নাগরপুরে করোনা প্রতিরোধক হোমিও মেডিসিন Ars.Alb-30 বিনামূল্যে বিতরণ ও অনুষ্ঠান

নাগরপুরে করোনা প্রতিরোধক হোমিও মেডিসিন Ars.Alb-30 বিনামূল্যে  বিতরণ ও অনুষ্ঠান




কপোতাক্ষ নিউজ ডেস্ক:
আহাম্মদ হোসেন হোমিও ক্লিনিকের উদ্যোগে ও প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান ও বিশিষ্ট হোমিওপ্যাথিক কনসালটেন্ট ডা.এম.এ.মান্নান এর সভাপতিত্বে ও নিজস্ব অর্থায়নে নাগরপুরে মহামারী করোনা ভাইরাস প্রতিরোধের জন্য প্রতিরোধক বা ইমিউনিটি বুষ্টার হোমিও ওষুধ আর্সেনিকাম এ্যালবাম ৩০ শক্তি বিভিন্ন শ্রেনীর মানুষের মাঝে ফ্রি বিতরণ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। 

আজ রবিবার ১৪ জুন ২০২০ খ্রি.বিকাল ৫.৩০ মিনিটে নাগরপুর শেফা হোমিও হলে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধক হোমিও ওষুধ আর্সেনিকাম এ্যালবাম ৩০  বিতরণ অনুষ্ঠান হয়।

কার্যক্রমটি সুষ্ঠুভাবে সম্পাদনের লক্ষ্যে অনুষ্ঠিত এই 
অনুষ্ঠানটি অনলাইনে উদ্বোধন করেন বাংলাদেশ হোমিওপ্যাথি বোর্ড(স্বাস্থ্য মন্ত্রালয় অধিভুক্ত ) ঢাকা বিভাগের প্রতিনিধি,বিশিষ্ট চিকিৎসক, সাবেক তুখোর ছাত্রনেতা ও নির্বাচিত জিএস,হোমিওপ্যাথিক সমাজের অত্যন্ত জনপ্রিয় অধ্যাপক ডা.কায়েম উদ্দীন। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে অনলাইনে বক্তব্য রাখেন টাঙ্গাইল হোমিও মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের মেডিসিন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক, বিশিষ্ট ক্যান্সার গবেষক হোমিওবন্ধু অধ্যাপক ডা.তোফাজ্জল হোসেন। 

উদ্ভোধক হিসাবে অধ্যাপক ডা.কায়েম উদ্দীন বলেন-
কোভিড-১৯ এর প্রতিরোধকল্পে বাংলাদেশ হোমিওপ্যাথি বোর্ডের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের পরামর্শক্রমে নির্বাচিত আর্সেনিকাম এ্যালবাম- ৩০ শক্তি হোমিওপ্যাথিক ঔষধটি এ পর্যন্ত টাঙ্গাইলের ৫০০০ হাজার জনসাধারণের মাঝে বিনামূল্যে বিতরণ করা হয়েছে। বাংলাদেশ হোমিওপ্যাথি বোর্ডের নির্দেশে টাংগাইল হোমিও মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল এর পক্ষ থেকে। হোমিও বোর্ডের চেয়ারম্যান ও হোমিও রত্ন ডা.দিলিপ কুমার রায়,রেজিস্টার ও কাম-সেক্রেটারী ডা.জাহাজ্ঞীর আলম এর সাহসী নেত্বতে  সারা বাংলাদেশে মহামারী করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে ইমিউনিটি বুষ্টার বা রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধির জন্য আর্সেনিকাম এ্যালবাম ৩০ ফ্রি বিতরণ কর্মসৃচী পালিত হচ্ছে তারই ধারাবাহিক আজ নাগরপুরে আমাদের প্রিয় ছাত্র ও সমাজ সেবক ডা.এম.এ.মান্নানের নিজস্ব অর্থায়নে ও নেত্বতে করোনা প্রতিরোধ হোমিও মেডসিন ফ্রি বিতরন কর্মসৃচী অনুষ্ঠিত হয়েছে। আমি এই উদ্যোগকে স্বাগত জানাই এবং সফলতা কামনা করি। 

প্রধান অতিথি হিসাবে অনলাইনে অধ্যাপক ডা.তোফাজ্জল হোসেন বলেন-মহামারী করোনা ভাইরাসে আজ সারা বিশ্বের সাথে বাংলাদেশ ও অচল হয়ে পড়েছে। করোনা প্রতিরোধে আমাদের সকলেই সচেতন হতে হবে। রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধির জন্য আর্সেনিকাম এ্যালবাম ৩০ শক্তি বিতরন এটা একটা মহৎ উদ্যোগ আমি ডা.এম.এ.মান্নান কে ধন্যবাদ জানাই কারন এতো অল্প বয়সে এতো বড় মহৎ কাজ হাতে নেওয়ার জন্য। রাজারবাগ পুলিশ লাইন হাসপাতালে ইতিমধ্যে আর্সেনিক এ্যালবাম ৩০ করোনা পজিটিভ রোগীদের সেবনে অল্পদিনে নেগেটিভ আসছে। যারা আর্সেনিক এ্যালবাম ৩০ শক্তি নিচ্ছেন একাধারে তিনদিন বাসীপেটে ৫/৬ টি করে বড়ি খাবেন। পাশাপাশি মাস্ক ব্যবহার করবেন, নিয়মিত বার বার সাবান দিয়ে হাত ধৈত করবেন। 

সভাপতি ও উদ্যোগ হিসাবে ডা.এম.এ.মান্নান বলেন-আমি করোনা প্রতিরোধে আমার নিজস্ব উদ্যোগে নাগরপুরে কাজ করে যাচ্ছি। আমি বিভিন্ন সময়ে নাগরপুর বাসীর মাঝে মাস্ক,সাবান,হ্যান্ডস্যানিটাইজার, মেডিসিন বিতরণ করেছি এবং অসহায়,কর্মহীনদের মাঝে খাদ্য সামগ্রী ও ছাত্রদের মাঝে শিক্ষা উপকরন বিতরন করেছি যা নাগরপুর বাসী অবগত আছে এবং বিভিন্ন মিডিয়ায় প্রকাশ হয়েছে। তারই ধারাবাহিক হিসাবে আমার প্রিয় স্যার ডা.তোফাজ্জল স্যার,ডা.কায়েম স্যারের পরামর্শে নাগরপুরবাসীর জন্য করোনা প্রতিরোধক হোমিও মেডিসিন Ars.Alb.30 বিতরনের কর্মসৃচী গ্রহন করি আজ তা বাস্তবায়ন করছি। মহান আল্লাহ দরবারে শুকুরিয়া আলহামদুলিল্লাহ। আমি নাগরপুরে ১০০০ হাজার মানুষকে ফ্রি হোমিও প্রতিরোধক মেডিসিন দিব এবং পর্যাক্রমে নাগরপুরে বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি দপ্তরে আর্সেনিক এ্যালবাম ৩০ মেডিসিন প্রদান করবো। সবাই আমার জন্য দোয়া করবেন আমি যেন আপনাদের পাশে থেকে দেশ ও মানুষের সেবা করতে পারি। সবাই ভাল থাকেন সুস্হ থাকেন,আল্লাহ হাফেজ। 

আর্সেনিকাম এ্যালবাম ৩০ শক্তি বিতরন অনুষ্ঠানে উপস্হিত ছিলেন-শেফা হোমিও হলের পরিচালক ডা.আ.ওয়াহাব, মা হোমিও হলের পরিচালক ডা.মো.শাহ আলম শাহিন, বনগ্রাম শহীদ মেমোরিয়াল উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক মো.আরশেদ আলী মিয়া,সমবায় উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারি প্রধান শিক্ষক জ্বনাব কাজি আব্দুল আওয়াল, দুয়াজানী কলেজ পাড়া ছাত্র কল্যান পরিষদের মহাসচিব ও মিডিয়া কর্মী সাংবাদিক সজিব হুসাইন মোহাম্মদ হাসান ও হোমিও বন্ধু হাফেজ মো.বেল্লাল হোসেন প্রমুখ। পরে উপস্হিতি জনগনের মাঝে আর্সেনিক এ্যালবাম ৩০ বিতরনের মধ্যে দিয়ে আজকের অনুষ্ঠানটি সমাপ্তি ঘোষনা করা হয়। 

 ইতোপূর্বে টাঙ্গাইল হোমিওপ্যাথিক মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালের পক্ষ থেকে টাঙ্গাইলের জেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন, বিচার প্রশাসন,টাঙ্গাইল পৌরসভা ও আপামর জনসাধারণের মাঝে ঔষধটি বিতরণ করা হয়েছে এবং টাঙ্গাইল হোমিওপ্যাথিক মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালের আউটডোর থেকে প্রতিদিন সাধারণ জনগণকে ঔষধসেবা প্রদান কার্যক্রমটি এখনো চলমান রয়েছে।

কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে গাজাসহ আটক ১জন

কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে গাজাসহ আটক ১জন




কুষ্টিয়া প্রতিনিধি। 
 
কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে ১ কেজি গাজাসহ  ১জনকে আটক করে পুলিশ। আজ ১৪ই জুন বরিবার রাত ৮ টার সময় দৌলতপুর উপজেলার মথুরাপুর বাজারের বাসস্টান্ড থেকে ১ কেজি গাজা সহ ১ জন মোঃ রুহিদ (১৮) পিতা মোঃ আলম বাড়িঃভাগজোত কে  আটক করে পুলিশ। 


জানা যায় 
গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মথুরাপুর ক্যাম্পের এস, আই আব্দুল জব্বার সহ সঙ্গীয় ফোর্স জানতে পারে  মথুরাপুর বাজারের উপর দিয়ে মাদক(গাজা) পারাপার হবে জানতে পারলে রাত  ৮ টার সময় এস,আই জব্বার ও তার সঙ্গীয় ফোর্স অভিযান চালালে ১কেজি গাজা সহ আসামী মোঃ রুহিদ(১৮) কে গ্রেফতার করে।

মঘাদিয়ায় ৩৯টি মসজিদে প্রধানমন্ত্রীর উপহার প্রদান

মঘাদিয়ায় ৩৯টি মসজিদে  প্রধানমন্ত্রীর উপহার প্রদান




মিরসরাই প্রতিনিধি
মিরসরাই উপজেলার ১১ নং মঘাদিয়া ইউনিয়নের ৩৯টি মসজিদে উপহার স্বরূপ ৫ হাজার টাকা করে অনুদান দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেষ হাসিনা। রবিবার (১৫ জুন) বিকেল ৩টায় ইউনিয়ন পরিষদ কমপ্লেক্সে মসজিদের ইমাম, মুয়াজ্জিনদের হাতে উপহারের এই অর্থ তুলে দেয়া হয়েছে। ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি তোফায়েল উল্ল্যা চৌধুরী নাজমুলের সভাপতিত্বে ও ইউনিয়ন পরিষদের সচিব বিকাশ ধরের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি বক্তব্য রাখেন উপজেলা আওয়ামীলীগের সদস্য নুরুল গনি। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন ইসলামী ফাউন্ডেশন মিরসরাই উপজেলার ফিল্ড সুপারভাইজার নুরুল হক শিকদার, ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি মফিজ মাষ্টার, মঘাদিয়া ইউনিয়ন মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার হাজ্বী নুর হোসেন, আওয়ামীলীগ নেতা হাবিবুর রহমান চৌধুরী।
মঘাদিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর হোসাইন মাষ্টার বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, জননেত্রী শেখ হাসিনার পক্ষ থেকে আমার ইউনিয়নের ৩৯টি মসজিদের জন্য ৫ হাজার টাকা করে অনুদান প্রদান করা হয়েছে। আমি সকলের কাছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, মিরসরাই এর অভিভাবক প্রিয় নেতা সাবেক সফল মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন ও মিরসরাই’র আগামীর কর্ণধার মাহবুব রহমান রুহেল ভাইয়ের জন্য দোয়া কামনা করছি।

করোনায় তৈরি হওয়া হাজারো মানুষের হতাশা নিভে যাবে কবে?

করোনায় তৈরি হওয়া হাজারো মানুষের হতাশা নিভে যাবে কবে?




রিয়াজুল করিম রিজভী প্রতিনিধি চট্টগ্রাম

করোনা মহামারীর শুরু থেকেই বেড়ে চলেছে মানুষের হাহাকার।কেউ খাবার কিংবা অন্য অন্য ভাবে সাহায্য করে গেছেন হাজার হাজার মানুষকে। কিন্তু দেখা যাচ্ছে ধীরে ধীরে এই সাহায্যটা বন্ধ হয়ে আসছে।তারা ও আর কীভাবে সাহায্য করবে। সবকিছু তো পুড়িয়ে যাওয়ার একটা নিয়ম আছে।

মানুষ ঢাকা ছাড়তেছে হাজার হাজার। এমনকি ঢাকার সাথে ও কম নেই কোথাও। চট্টগ্রাম সহ বাংলাদেশের সব শহর জুড়ে তাকিয়ে দেখলে বুঝা যায়।সব নিম্ন মধ্যবিত্ত এবং মধ্যবিত্তের শহর নগরী ছেড়ে গ্রামেগঞ্জে ছুটে চলার দৃশ্য। এইরকম হাজার হাজার মানুষ শহর চাড়ছে অনেকেই চাড়বে।

বিদেশ ফেরত লাক্ষ মানুষ এর পরিবার এর হাহাকার।
বছরের প্রথমে তারা নিজ ভূমিতে ফিরে আসে একটু ছুটির সময় কাটাবে বলে। পরিবার পরিজন এর সাথে তারা কিছু মাস কাটিয়ে । আবার পাড়ি দিবে পরিবার এর ভার বহন করত জীবিকা নির্বাহ করতে।আপন ভূমি চেড়ে ভিন্ন ভিন্ন দেশে। কিন্তু পরিস্থিতির ভয়াবহতার কারণে আর ফেরা হয় না গন্তব্যে।

এইরকম অনেক পরিবার শহর চাড়তে নিয়মিত। অনেক ছাত্র ছাত্রী যারা ম্যাচ এ থেকে পড়াশোনা করত। তাদের হয়েছে একই দশা। পরিস্থিতির কারণে অনেক দিন ধরে বন্ধ টিউশনি। বন্ধ তাদের রোজগার এর উপায় গুলো।এর ফলে তাদের বিভিন্ন ভোগান্তিতে পড়তে হচ্ছে। অনেক ছাত্র ছাত্রী ম্যাচ চেড়ে চলে এসেছে নিজ বাড়িতে।

বেকার হচ্ছে অসংখ্য যুবক।বিদেশে ফেরত হচ্ছে অনেক প্রবাসী। দেশে থেকে ও চাকরি হারাচ্ছেন বিপুল সংখ্যক মানুষ। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ হলে কী হবে তাদের?? সরকার কী এদের বিষয় ভেবে কোন পদক্ষেপ নিচ্ছেন?? শুধু বাজেট ঘোষণা করলে সমস্যা দূরীকরণ হয় না।এই জন্য সরকারের নিতে হবে কঠোর পদক্ষেপ।

সামরিক প্রশাসনিক কর্মকর্তা থেকে শুরু করে চাকরিরত অবস্থায় সকলের বেতন থেকে নির্দিষ্ট পরিমাণ অর্থ নিয়ে। তাদের জন্য বেকার ভাতা । কিংবা বেকার দূর করতে হবে।না হয় কি হবে বাংলার এই অসংখ্য মানুষের!!তা অজানায় থেকে যাবে হয়ত সরকারের।

এই মানুষ গুলোর কথা চিন্তা করে বাংলাদেশের সকল চাকরিরত মানুষের এগিয়ে আশা উচিত। তাহলে দেশ ও সমাজের সমস্যা গুলো মুছে যাবে। বাংলায় নতুন ভাবে গড়ে উঠবে বেকার মুক্ত সমাজ।

নিরুপায় হয়ে মেস ছাড়ছে জবি শিক্ষার্থীরা

নিরুপায় হয়ে মেস ছাড়ছে জবি শিক্ষার্থীরা





জবি প্রতিনিধিঃ করোনা সংকটে প্রায় ৩ মাস বন্ধ জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) ক্লাস-পরীক্ষা। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন জানিয়েছে সীমিত পরিসরে বিশ্ববিদ্যালয় খোলা থাকলেও অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ থাকবে ক্লাস-পরীক্ষা। ফলে কোনো উপায় না দেখে মেসবাড়ি ছাড়তে শুরু করেছে শিক্ষার্থীরা।

সম্পূর্ণ অনাবাসিক হওয়ায়া মেসবাড়িতেই থাকতে হয় জবির প্রায় শতভাগ শিক্ষার্থীকে। টিউশন কিংবা পার্টটাইম চাকুরী করেই মেসভাড়ার যোগান দেন সিংহভাগ শিক্ষার্থী। শুধু মেসভাড়ায় নয় অনেক শিক্ষার্থী তাদের ক্ষুদ্র আয় থেকে পরিবারকেউ টাকা পাঠান। সবমিলিয়ে করোনা সংকটে বিপদে পড়েছেন এসব শিক্ষার্থীরা।

করোনা সংকটে টিউশন, পার্টটাইম জব হারালেও মেসভাড়ার জন্য চাপ অব্যহত রেখেছেন মেসমালিক ও মেসম্যানেজাররা। এরূপ পরিস্থিতিতে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন থেকে বাড়িভাড়া সমস্যা সমাধানে কমিটি গঠন করা হলেও মেলেনি সুস্পষ্ট কোনো বক্তব্য। সব মিলিয়ে জলে কুমির ডাঙায় বাঘ অবস্থা শিক্ষার্থীদের। এরূপ পরিস্থিতিতে মেস ছেড়ে দেওয়াকেই প্রাধন্য দিচ্ছেন শিক্ষার্থীরা। 

মেস ছেড়ে দিয়েছেন অথবা দিবেন এমন শিক্ষার্থীদের সাথে কথা বলে জানা যায়, করোনা সংকট কবে নাগাদ শেষ হবে তার নিশ্চয়তা নেই। তাই দীর্ঘসময় অতিরিক্ত মেসভাড়া বহন করার যুক্তি নেই। তাছাড়া পরবর্তী সময়ে সরকার থেকে যদি কোনো নির্দিষ্ট পার্সেন্ট মওকুফের ঘোষণাও আসে সেক্ষেত্রে বাকি টাকাটাতো দিতেই হবে। 

সম্প্রতি ১৩ তম আবর্তনের শিক্ষার্থী কাওসার আহমেদ অন্তর বলেন, কবে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হবে জানিনা, সরকার থেকে কিছু মওকুফ হবে কি হবে না তারও নিশ্চয়তা নেই। এভাবে অনিশ্চিয়তার মধ্যে থাকার থেকে মেস ছেড়ে দেওয়া ভালো মনে করেছি।

তবে এক্ষেত্রে মালামাল নিয়ে আত্মীয় কিংবা বন্ধুর বাসায় রাখলেও। যাদের ঢাকাতে আত্মীয় কিংবা বন্ধুর বাসা নেই তারা পরছেন বিপাকে। এসমস্ত শিক্ষার্থীদের দাবি, এক্ষেত্রে তাদের জিনিসপত্র রাখার ব্যবস্থা করা হোক প্রশাসন থেকে।

ইতিহাস ১৫ আবর্তনের শিক্ষার্থী রিমন বলেন, আমি এসপ্তাহে মেস ছেড়েদিবো। আমার কোনো আত্মীয় নেই ঢাকাতে, বন্ধুদের কারও কাছে জিনিসপত্র রাখার সুযোগ পাচ্ছি না। এঅবস্থায় ক্যাম্পাসে জিনিসপত্র রাখার সুযোগ পেলে ভালো হতো।

এবিষয়ে বাড়িভাড়া সমস্যা সমাধান কমিটির সদস্য সাবেক প্রক্টর অধ্যাপক ড. নূর মোহাম্মদ বলেন, মেসভাড়া সমস্যা সমাধানে আমরা কাজ শুরু করেছি। ইতিমধ্যে শিক্ষার্থীদের তথ্য সংগ্রহ করতে বলা হয়েছে বিভাগগুলোকে। শিক্ষার্থীদের সমস্যা জানার পর আমরা সেঅনুযায়ী প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিবো।
ক্যাম্পাসে শিক্ষার্থীদের জিনিসপত্র রাখার বিষয়ে তিনি বলেন, এটা অবশ্যই করা যায়। এক্ষেত্রে শিক্ষার্থীদের নিজ বিভাগে জিনিসপত্র থাকলে নিরাপদ থাকবে। ক্লাস শুরুর আগেই তারা তাদের জিনিসপত্র সরিয়ে নিলো।

মধুপুরে যৌতুকের জন্য নির্যাতনেরর শিকার গৃহবধু রত্না

মধুপুরে যৌতুকের জন্য নির্যাতনেরর শিকার গৃহবধু রত্না




 মো: আ: হামিদ মধুপুর টাঙ্গাইল প্রতিনিধিঃ
টাঙ্গাইলের মধুপুরের অরণখোলা ইউনিয়নের কাকরাইদ রামকৃষ্নবাড়ী এলাকার মুত নুরুল ইসলামের মেয়ে মোছা: রত্না আকতার নামে এক গৃহ বধু নির্যাতনের শিকার হয়ে মধুপুর উপজেলা স্বাস্হ কমপ্লেক্সে চিকিস্যাধীন আছেন। জানা যায় উপজেলার গাছাবাড়ী এলাকার আব্দুল বাছেদের ছেলে আমিনুর ইসলামের সহিত দুই বৎসর আগে তাদের বিবাহ হয়। বিবাহের পর হতেই পাষন্ড স্বামী তার স্ত্রী রত্নাকে যৌতুকের জন্য চাপ সৃষ্টি করে। কিন্তু এতিম অসহায় রত্নার মা যৌতুকের টাকা না দিতে পারায় নির্যাতনের মাত্রা দিন দিন বেড়েই চলে। কিন্তু রত্নার মা পরের বাড়ীতে কাজ করে কোন ভাবে দিন যাপন করছে বলে রত্নার মা জানান। এ দিকে করোনার কারনে কোন কাজ কর্ম না করতে পারায় তার সংসার এমনিতেই টানা পোড়া।  যৌতুকের জন্য চাপ দেয়া টাকা দিব কেমনে। রত্না জানায় আমার স্বামী মাঝে মধ্যেই বলত তোর মার কাছ থেকে যদি টাকা না এনে দিস আমি তোকে জানে মেরে ফেলব। বুধবার(১০জুন) আবার আমাকে টাকা এনে দেয়ার জন্য চাপ দিলে আমি বলি আমার মা টাকা কোথায় পাবে যে আমি তোমাকে টাকা এনে দিব। এতে সে ক্ষিপ্ত হয়ে আমাকে মার পিট করে। রাতে আমি ঘুমিয়ে পড়লে আমার স্বামী, শাশুরী, ও স্বামীর বড়বোন তানিয়া রাত আনুমানিক দশটার দিকে আমার ঘরে প্রবেশ করে অতর্কিত ভাবে আমাকে হামলা করে মারপিট শুরু করে। স্বামী আমিনুর বলে আজ তোকে মেরেই ফেলব এই বলে সে আমার মাথায় ইট দিয়া আঘাত করলে আমি মাটিতে পড়ে যাই। শাশুরী আয়শা বেগম আমার চুল ধরে টানা হেচরা করতে থাকে এবং ননদ তানিয়া এলোপাথারী ভাবে কিল, ঘুষি, লাথি মারিতে থাকে। আমি ডাক চিৎকার করলে আশে পাশের লোকজন এগিয়ে এসে তাদের কবল হতে আমাকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য মধুপুর উপজেলা স্বাস্হ কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।  এব্যাপারে আজ রবিবার(১৪ জুন) মধুপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর সুবিচার চেয়ে একটি লিখিত অভিযোগ করা হয়েছে।

মাধবপুরে দুই স্কুলছাত্রীকে অপহরণের চেষ্টা যুবক আটক

মাধবপুরে দুই স্কুলছাত্রীকে অপহরণের চেষ্টা যুবক আটক





লিটন পাঠান মাধবপুর প্রতিনিধি

হবিগঞ্জের মাধবপুরে দুই স্কুলছাত্রীকে অপহরণের চেষ্টার অভিযোগে এমরান মিয়া নামে এক যুবককে আটক করেন গ্রামবাসী। পরে গণপিটুনি দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করে, রোববার (১৪-জুন) সকাল সাড়ে ১১টার দিকে মাধবপুর উপজেলার মনতলা মাধবপুর সড়কের,

মেরাশানী গ্রামের এ ঘটনা ঘটে।
এমরান মিয়া উপজেলার কমলপুর গ্রামের কালা মিয়ার ছেলে জানা যায়, মেরাশানী গ্রামের দুই শিশু শিক্ষার্থী প্রাইভেট পড়া থেকে বাড়ি আসার সময় রাস্তার পাশে টমটম গাড়ী,

থেকে নেমে এমরান তাদের ধরতে চেষ্টা, করে শিক্ষার্থীরা চিৎকার করলে গ্রামবাসী ধাওয়া করে এমরান মিয়াকে (২৬) আটক করে, খবর পেয়ে মনতলা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছলে গ্রামবাসী তাকে পুলিশে সোপর্দ করে।

মনতলা তদন্ত কেন্দ্রর ইনচার্জ মোঃ কাইয়ুম বলেন, এমরানের মানসিক সমস্যা থাকতে পারে। যাচাই বাচাই করে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

মাধবপুরে প্রেমিকের বিষ পানের খবর পেয়ে ফাঁস দিয়ে প্রেমিকার আত্নহত্যা,

মাধবপুরে প্রেমিকের বিষ পানের খবর পেয়ে ফাঁস দিয়ে প্রেমিকার আত্নহত্যা,





লিটন পাঠান হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি

হবিগঞ্জের মাধবপুরে প্রেমিকের বিষ পানের খবর পেয়ে প্রেমিকা গলায় ফাঁস দিয়ে আত্নহত্যা করেছে। মূমুর্ষ অবস্থায়  হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে প্রেমিককে। আজ রোববার বিকালে  উপজেলার নোয়াপাড়া ইউনিয়নের নায়ায়নপুর গ্রাম থেকে  কুলসুমা বেগম (১৭) নামে এক  পোষাক  

শ্রমিকের লাশ উদ্ধার করে  ময়নাতদন্তের জন্য প্রেরণ করেছে পুলিশ । নারায়নপুর গ্রামের  আনছর আলীর মেয়ে কুলসুমা। আনছর আলী জানান তার মেয়ে নয়াপাড়ার একটি পোষাক কারখার শ্রমিক। কারখানায়  শ্রমিক হৃদয়ের
সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে,

কুলসুমার এক পর্যায়ে প্রেমের গভীরতা বাড়তে থাকে। হৃদয় কুলসুমাকে বিয়ে করতে ব্যাকুল হয়ে উঠে। এর মধ্যে প্রেমিকা কুলসুম জানতে পারে হৃদয় আগে একটি বিয়ে করেছে। বিয়ের বিষয় টি জানার পর  কুলসুমা প্রেমিক হৃদয়ের প্রতি অভিমান করে এড়িয়ে চলতে থাকে এতে অভিমান করে মনের দুঃখে,

শনিবার সকালে হৃদয় বিষপানে, আত্নহত্যার চেষ্টা চালায় তাকে আশংকা জনক অবস্থায় স্বজনরা হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে ভর্তি করে, হৃদয়ের বাড়ি নয়াপাড়া রেলষ্টেশন  এলাকায়, এখবর  প্রেমিকা কুলসুমার কাছে পৌঁছলে  আজ রোবরার (১৪-জুন) দুপুরে  নিজ বাড়ির ঘরের তীরের সাথে ওরনা পেছিয়ে আত্নহত্যা,

করে। মাধবপুর থানার এসআই  মাহবুব রহমান জানান লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য হবিগঞ্জ  সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরন করেছে।

মাধবপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি ইকবাল হোসেন সত্যতা নিশ্চত করেছেন।

সিরাজগঞ্জ ১ দিনে করোনা উপসর্গ নিয়ে ৩ জনের মৃত্যু

সিরাজগঞ্জ ১ দিনে করোনা উপসর্গ নিয়ে ৩ জনের মৃত্যু



মাসুদ রানা সিরাজগঞ্জ জেলাপ্রতিনিধিঃ সিরাজগঞ্জে করোনার উপসর্গ নিয়ে একদিনে ৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। মৃত ব্যক্তিরা হলেন, উল্লাপাড়া পৌর এলাকার কাওয়াক হাসপাতাল পাড়ার নুর আমিন (৫৪), একই এলাকার বারইয়া পালপাড়া মহল্লার সুবল পাল (৭৫) ও তাড়াশ উপজেলার বাঁশবাড়িয়া গ্রামের আব্দুল করিম (৭৫)।
সংশ্লিষ্ট উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তাগণ এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।
তারা আমাদের প্রতিনিধিকে  জানান, মৃত ব্যাক্তিরা জ্বর, ঠান্ডা, কাশি ও ডায়াবেটিস নিয়ে বেশকিছু দিন ধরে ভুগছিলেন এবং তারা শনিবার সকালে ২ রাতে ১ জন মৃত্যুবরণ করেন। ইতিমধ্যেই ঘটনাস্থলে মেডিকেল টিম পাঠিয়ে মৃতদের পরিবার ও সংস্পর্শে যারা এসেছিল তাদের হোম কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে। সেইসাথে মৃত ব্যক্তিসহ তাদের পরিবারের সদস্যদের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে বলে তারা উল্লেখ করেন।

সিরাজগঞ্জে লাইট হাউস’র উদ্যাগে হিজড়াদের খাদ্য সামগ্রী বিতরণ

সিরাজগঞ্জে লাইট হাউস’র উদ্যাগে হিজড়াদের  খাদ্য সামগ্রী বিতরণ




মাসুদ রানা
 সিরাজগঞ্জজেলা প্রতিনিধিঃ
করোনা মহামারির প্রভাব মোকাবেলার অংশ হিসেবে আইসিডিডি আর,বি এবং জার্মান ডক্টরস এর আর্থিক সহযোগিতায় ৪৬ জন কর্মহীন হিজড়া  এবং এম.এসডব্লিউদের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে। 
রোববার  ১৪ জুন সকাল সাড়ে ১০ টায়  স্বাস্থ্যবিধি মেনে ও সামাজিক  দূরত্ব  বজায়  রেখে  শহরের  উত্তর মালশাপাড়া  কবরস্থান রোডস্থ সিরাজগঞ্জ লাইট হাউস এর শাখা কার্যালয়ে   কর্মহীন হিজড়া ও এম.এসডাব্লিউদের মাঝে এ  খাদ্য সামগ্রী বিতরণ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন জেলা সমাজসেবা সহকারী পরিচালক মুহাম্মদ মতিয়ার রহমান। 
এসব খাদ্য  সামগ্রী  বিতরণে উপস্থিত ছিলেন 
লাইট হাউস প্রকল্পের টিম লিডার মোঃ সালাহ উদ্দিন,  সুক এনজিও  নির্বাহী পরিচালক  মােঃ আনােয়ার হােসেন ,লাইট হাউসের ডিআইসি ম্যানেজার মোঃ জাহাঙ্গীর  আলম , আউট সুপারভাইজার  মোঃ রেজাউল  ইসলাম, লাইট হাউস এর জেনারেল প্রাকটিশনার  ডাঃ মোঃ সোহেল রানা প্রমূখ।  
স্বাগত বক্তব্য রাখতে গিয়ে সিরাজগঞ্জ  লাইট হাউসের ডিআইসি ম্যানেজার জাহাঙ্গীর আলম বলেন, লাইট হাউস বাংলাদেশের গ্রামীন ও শহরের দরিদ্র্য, প্রান্তিক ও উচ্চ ঝুকিপূর্ণ জনগোষ্ঠির নারী ও পুরুষ যৌন কর্মী, হিজড়া, সংখ্যালঘু এবং আদিবাসী সহ অনান্য পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীর কাজ করে আসছে।
বর্তমানে সারা বিশ্বের মত বাংলাদেশও করোণা মহামারি মোকাবেলা করছে।এ সহায়তা  হিসাবে  প্রত্যেক হিজড়াকে   চাল ১২কেজি, আলু ৪কেজি, মুশুর ডাল-২কেজি, সোয়াবিন তেল-২ লিটার, লবণ-২কেজি, পিঁয়াজ-২কেজি বিতরণ  করা  হয়। জেলা সমাজসেবা সহকারী পরিচালক  লাইট হাউসের এই উদ্যোগের প্রশংসা করেন।

কুড়িগ্রামের উলিপুরে গাছ থেকে পড়ে ৬ষ্ঠ শ্রেণির শিক্ষার্থীর মর্মান্তিক মৃত্যু

কুড়িগ্রামের উলিপুরে গাছ থেকে পড়ে ৬ষ্ঠ শ্রেণির শিক্ষার্থীর মর্মান্তিক মৃত্যু




কৃষ্ণ সরকার, স্টাফ রিপোর্টারঃ ঘটনাটি ঘটেছে, কুড়িগ্রাম জেলার উলিপুর উপজেলার  পান্ডুল ইউনিয়নের মন্ডল পাড়া গ্রামে। এ ঘটনায় ওই এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে ।
স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, মাসুম মিয়া ছোট বেলা থেকে উপজেলার পান্ডুল ইউনিয়নের মন্ডল পাড়া গ্রামে তার নানা বাচ্চু মিয়ার বাড়িতে থেকে লেখাপড়া করতো। রবিবার সকাল ১১টার দিকে আম পাড়তে গাছে উঠলে ডাল ভেঙ্গে সে মাটিতে পড়ে যায়। পরে স্বজনরা তাকে উদ্ধার করে কুড়িগ্রাম সদর হাসপাতালে নেয়ার পথে তার মৃত্যু হয়। নিহত মাসুম আপুয়ার খাতা নেছারীয়া আলিম মাদ্রাসার ৬ষ্ঠ শ্রেণির শিক্ষার্থী ও রাজারহাট উপজেলার উমরমজিদ ইউনিয়নের বটতলি গ্রামের আল আমিনের পুত্র।
উলিপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মোয়াজ্জেম হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে।

মোহনগঞ্জে উন্নতমানের পাট উৎপাদন বিষয়ে প্রশিক্ষণ কর্মশালা

মোহনগঞ্জে উন্নতমানের পাট উৎপাদন বিষয়ে প্রশিক্ষণ কর্মশালা




আজহারুল ইসলাম মোহনগঞ্জ (নেত্রকোনা): নেত্রকোনার মোহনগঞ্জে প্রযুক্তি নির্ভর উন্নতমানের পাট চাষ, বীজ সংগ্রহ ও সংরক্ষণ বিষয়ে প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে। 

একশ জন পাট চাষীকে এ বিষয়ে প্রশিক্ষণ দেয়া হয়। প্রশিক্ষণ শেষে তাদের প্রত্যেককে পাঁচশ টাকা করে দেয়া হয়।

উপজেলা প্রসাশন ও পাট অধিদপ্তরের আয়োজেন রবিবার (১৪ জুন) বেলা ১১টার দিকে উপজেলা হলরুমে এ প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়। 

উপজেলা নির্বাহী অফিসার আরিফুজজ্জামান এ কর্মশালার উদ্বোধন করেন। 

এ প্রশিক্ষণ কর্মশালা সমন্বয় করেন উপজেলা পাট উন্নয়ন কর্মকর্তা নাজুমল আলম চৌধুরী। 

এতে বক্তব্য রাখেন জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক হাবিবুর রহমান, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মোস্তফা কামাল, বিএডসি'র উপরিচালক সবুজ কুমার সরকার, উপসহকারী পাট উন্নয়ন কর্মকর্তা মোহাম্মদ আলী প্রমূখ।

কুয়েতে করোনা ভাইরাসে আজ নতুন আক্রান্ত ৪৫৪ জন মৃত্যু ৭ জন

কুয়েতে করোনা ভাইরাসে আজ নতুন আক্রান্ত  ৪৫৪ জন মৃত্যু ৭ জন





দাইয়ানুর রহমান মিষ্টারনুর কুয়েত প্রতিনিধিঃ

কুয়েতের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের তথ্য  মতে, আজ ( ১৪ জুন) করোনা ভাইরাসে আরো ৪৫৪ জন নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন বলে শনাক্ত করা হয়েছে।
এ পর্যন্ত কুয়েতে করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩৫৯২০ জনে, চিকিৎসাধীন  ৮৮৬৫ জন, সুস্থতা লাভ করেছেন ২৬৭৫৯ জন ও বর্তমানে সংকটপূর্ণ অবস্থা ১৭১ জন।

আজ নতুন করে ৭ জনের মৃত্যু হয়েছে।
এনিয়ে মোট মৃত্যু হয়েছে ২৯৬ জনের। 

গত ২৪ ঘন্টায় করোনায় আক্রান্ত বিভিন্ন দেশের নাগরিক।
ভারতীয় নাগরিক - ৪১ জন
স্থানীয় নাগরিক- ১৯৩ জন
মিশরীয় নাগরিক - ৬৮ জন

করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত বাংলাদেশী আজ নতুন করে আরো ৩৫ জন সহ শনাক্ত মোট এজ পর্যন্ত শনাক্ত ৩৮৪০ জন।
বাকিরা অন্যান্য দেশের।

আজকের রিপোর্টে জানাগিয়েছে কুয়েতে ৫ প্রদেশে আক্রান্তদের সংখ্যা।
ফারওয়ানিয়া - ১৫৩ জন
আহমদি - ৮৮ জন
হাওয়াল্লী - ৬৬ জন
জাহরা - ১০৭ জন
রাজধানী শহর - ৪০ জন

আজকের আবাসিক এলাকায় সর্বোচ্চ আক্রান্ত।
জিলিব আল-সুয়েখ - ৩২ জন
ফারওয়ানিয়া - ৩৪ জন
আরদিয়া- ২৩ জন
আব্দালি - ২০ জন
জাহরা- ১৯ জন
খাইতান- ১৫ জন

এছাড়াও দেশটির তিনটি জায়গায় যথাক্রমে, জওয়ান রেসর্ট,খাইরান রেসর্ট ও আল-কুত বিচ্ হোটেলসহ আরো বেশ কয়েকটি ক্যাম্পে স্থানীয় ও প্রবাসী নাগরিকদের কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে।

বর্তমানে কুয়েতে ''জরুরী অবস্থা'' চলছে।
সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে চলাফেরা করতে নির্দেশ এবং খুব বেশি প্রয়োজন ব্যতীত ঘরের বাইরে বের হওয়া থেকে বিরত থাকতে নিষেধ করেছে দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

কুয়েতের সর্বত্রে (৩১ মে থেকে তিন সপ্তাহ) সন্ধ্যা ৬ টা থেকে সকাল ৬ টা পর্যন্ত ( ১২ ঘণ্টার কারফিউ)
উল্লেখ্য,  মহামারী করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে কুয়েতের সর্বত্রে চলছে লকডাউন ও কারফিউ।
প্রায় তিন মাস পর ৩১ মে থেকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে ধীরে ধীরে দেশটি স্বাভাবিক কাজকর্মে ফেরার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে।
অন্যদিকে রয়েছেঃ- মাহবুলা,জিলিব,ফারওয়ানিয়া, খাইতান ও হাওয়াল্লী এলাকায় টোটাল লকডাউন।
তবে টোটাল লকডাউন এলাকার কিছু সংখ্যক স্ট্রিট ও ব্লককে এর আওতার বাইরে রাখা হয়েছে। 

এদিকে টোটাল লকডাউন এর আওতার বাইরে নিম্নের ব্লক ও স্ট্রিট গুলো যেমনঃ-
ফারওয়ানিয়া, স্ট্রিট নং- ৬০.১২০.৫২০ ও ১২৯।

খাইতান, ব্লক নং- ৪.৬.৭.৮ ও ৯

সূত্র, আরব টাইমস

হোমিওবন্ধু তুহিনের নিজস্ব অর্থায়নে ধুবড়িয়া ঋষি পাড়ায় নগদ অর্থ প্রদান

হোমিওবন্ধু তুহিনের নিজস্ব অর্থায়নে ধুবড়িয়া ঋষি পাড়ায় নগদ অর্থ প্রদান
   

ডাঃ এম. এ. মান্নান টাংগাইল জেলা প্রতিনিধিঃ
মহামারী করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব মোকাবেলায় টাঙ্গাইলের নাগরপুর  উপজেলা ধুবড়িয়া ইউনিয়নের কৃতি সন্তান বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও সমাজসেবক,ট্যাড গ্লুপের ম্যানেজিংডিরেক্টর(এমডি) ও হোমিওপ্যাথি পরম বন্ধু  জনাব.মো.আশিকুর রহমান তুহিনের নগদ আর্থিক অনুদান রবিবার ১৪ জুন দুপুর ২টার সময় আশিকুর রহমান তুহিন এর নিজ বাসা (পৈত্রিক বাসা) ধুবড়িয়ার ঋৃষি পাড়ার সকল পরিবারের  হাতে তুলে দেন নগদ এই অর্থ এ সময় উপস্থিত ছিলেন আশিকুর রহমান তুহিন এর চাচা মোঃআমিনূর রহমান হারুন মিয়া,মোঃশামছুল রহমান আজম মিয়া,ভাই নাগরপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের কার্যকরী পরিষদের সম্মানিত সদস্য মো.আতিকুর রহমান লিল্টু, ধুবড়িয়া ইউনিয়ন আওয়ামী যুবলীগের আহবায়ক ও গনমাধ্যম কর্মী মো.কবির হোসেন,বিশিষ্ট সমাজ সেবক  মোঃআশিকুর রহমান নিশাদ ও সমাজ সেবক, আফতাবু ররহমান,শশী,নাছির,জানিব,
রাজিব,সেতাব, এসময় নাগরপুর উপজেলা আওয়ামী লীগ সদস্য মো.আতিকুর রহমান নিল্টু বলেন, শিল্পপতি জনাব মো.আশিকুর রহমান তুহিন আমাদের নাগরপুরের ধুবড়িয়া গ্রামের কৃতি সন্তান। তিনি যেকোন দূর্যোগে নাগরপুর উপজেলা বাসীর পাশে আছেন এবং থাকবেন এটা একটা মহৎকাজ আপনাদের পাশেও আমি নিল্টু,কবির ও শিল্পপতি মো.আশিকুর রহমান তুহিনের নির্দেশে আছি এবং থাকবো। যুবনেতা ও গনমাধ্যমে কর্মী মো.কবির হোসেন বলেন,
শিল্পপতি ও সমাজসেবক মো.আশিকুর রহমান তুহিন অনেক ভাল মানুষ ও মানবিক।
তাঁর অর্থায়নে এর আগেও আমরা নাগরপুর উপজেলা স্বাস্হ্য কমপ্লেক্সে,বিভিন্ন ইউনিয়ন স্বাস্থ্য সেবা কেন্দ্রে ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার সৈয়দ ফয়েজুল ইসলাম এর নিকট কর্মকর্তা কর্মচারী,
চিকিৎসক ও স্বাস্হ্যকর্মীদের করোনা ভাইরাস থেকে সুরক্ষার জন্য সকল প্রকার সুরক্ষা সামগ্রী প্রদান করেছি এছাড়া দেলদুয়ার উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মাহমুদুল হাছান মারুফ ও দৌলতপুর থানায়ও করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ সামগ্রী দেয়া হয়েছে। ঋৃষি পাড়ার পরিবারদের হাতে নগদ অর্থ তুলে দেয়ায় তারা বলেন,আমরা আশিকুর রহমান তুহিন এর জন্য আল্লাহ কাছে প্রার্থনা করি আল্লাহ যেন তার নেক বাসনা পূর্ণ  করেন এবং তাকে ও তার পরিবার কে দীর্ঘ হায়াত দান করেন,আমিন।

চাঁদপুরে কচুয়া উপজেলা ছাত্রলীগের আহবায়ক ৮ বছর আগে বিয়ে করার অভিযোগ!

চাঁদপুরে কচুয়া উপজেলা ছাত্রলীগের আহবায়ক ৮ বছর আগে বিয়ে করার অভিযোগ!




ডেস্ক রিপোর্টঃ

চাঁদপুর কচুয়া উপজেলা ছাত্রলীগের আহবায়ক মোঃ সালাউদ্দিন সরকার এর বিরুদ্ধে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফেইসবুকে হাসিনা আক্তার মন্জু কচুয়া উপজেলা মহিলা লীগের সহ-সভাপতি ও সুমা চৌধুরী নামে দুই নারীর কথোপকথোন এর অডি ও রেকর্ড ভাইরাল। রেকোডিং থেকে শুনা যায় হাসিনা আক্তার মন্জুর সাথে ৮ বছর সংসার করছে কচুয়া উপজেলা ছাত্রলীগ এর আহবায়ক সালাউদ্দীন সরকার। এবং হাসিনা মন্জুর ৩০ বছর এর সংসার ছেড়ে তার ছেলের সমবেয়সি কচুয়া উপজেলা ছাত্রলীগ আহবায়ক সালাউদ্দীন সরকারকে নিয়ে ৮ বছর সংসার করছে। অন্য পাশে সুমা চৌধুরি ও একই দাবি করে বলেন সালাউদ্দিন সরকার এর সাথে ১০ বছর এর সম্পর্ক করে ৩ বছর আগে বিয়ের পিড়িতে বসেছে সম্পূর্ণ  ঘরোয়া  ভাবে। এবং কচুয়া উপজেলা ছাত্রলীগ এর আহবায়ক সালাউদ্দিন সরকার ও সুমা চৌধুরী কোল-জুড়ে একটি ফুট-ফুটে  ছেলে সন্তান আসে। তার ছেলের বয়েস ৭ মাস। সালাউদ্দিন সরকার কচুয়া উপজেলা ছাত্রলীগ এর আহবায়ক হওয়ার পর আজ চার মাস তার সন্তান স্ত্রীর কোন খোঁজ খবর নেয় না। সে  সুমা চৌধুরী ও তার সন্তান কে স্বীকার ও করে না। সালাউদ্দিন সরকার বলে আমার কমিটি দেড় বছর থাকবে এই দেড় বছর সালাউদ্দিন সরকার সুমা চৌধুরী কে বলছে কোন ভাবে যেন যোগাযোগ না করে। যদি করে তাহলে সুমা চৌধুরীর সন্তান ও তার স্ত্রীকে জানে মেরে ফেলবে বলে হুমকি দিয়েছে  আর বর্তমানে সোশ্যাল মিডিয়া  ফেইজবুকে একাধিক নারীকে প্রেমের ফাঁদে ফেলে হাজার হাজার টাকা হাতিয়ে নিয়েছে বলে সোশ্যাল মিডিয়া ভাইরাল হয়েছে। এদের মধ্যে আবিদা আফ্রীদি  নামের ঢাকা মিরপুর বাড়ি তার কাছ থেকে ৬০ হাজার টাকা নিয়েছে এই সালাউদ্দিন । রোঁদেলা রিতু নামে কচুয়া উপজেলা সাচার বাড়ি তাকে প্রেমের ফাঁদে ফেলে তাকে ধষর্ণ করে বলে অভিযোগ উঠেছে । সালাউদ্দিন আরো বলে যদি কাউকে বলে বা থানায় অভিযোগ করে তাহলে তাকে জীবনের তরে মেরে ফেলবে বলে হুমকি দেয়। ইতিমধ্যে ৪ জন নারী অভিযোগ করে বলেন এমনকি বিভিন্ন সময় তার কথোপকথোন এর এসএমএস ও ভাইরাল হয়েছে এখন চাঁদপুর জেলা সহ কচুয়া উপজেলায় এখন জনগণের মুখে মুখে তার কুকর্মের কথা শোনা যাচ্ছে তবে এ ব্যাপারে কচুয়া উপজেলা ছাত্রলীগের আহবায়ক সালাউদ্দিন সরকার এর ফেইসবুকে বার্তা প্রেরণ করে কোন উত্তর পাওয়া যায়না এমনকি তার মুঠোফোনে একাধিকবার কল করেও তাকে পাওয়া যাচ্ছেনা,
এই বিষয়ে সঠিক তদন্ত করার জন্য চাঁদপুর জেলা প্রশাসক ও চাঁদপুর জেলা পুলিশ সুপার মহাদয়ের দৃষ্টি আকর্ষণ করছেন ভুক্তভোগীরা সেই সাথে কচুয়া থানার অফিসার ইনচার্জের দৃষ্টি আকর্ষণ করছেন আর এই বিষয়ে দ্রুত তদন্তের দাবিও জানিয়েছেন স্থানীয় লোকজন।

মোংলায় পরিবেশ বান্ধব টেকসই কৃষি চাষাবাদের অভিজ্ঞতা বিনিময় সভা

মোংলায় পরিবেশ বান্ধব টেকসই   কৃষি চাষাবাদের অভিজ্ঞতা বিনিময় সভা




মোঃএরশাদ হোসেন রনি, মোংলা    
 বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা বিএএসডির আয়োজনে পরিবেশ বান্ধব টেকসই কৃষি প্রশিক্ষণ ও প্রয়োগের অভিজ্ঞতা বিনিময় সভা ১৪ জুন রবিবার সকালে মোংলার সেন্ট পল্স হলরুমে অনুষ্ঠিত হয়।

রবিবার সকাল সাড়ে ১১টায় অনুষ্ঠিত অভিজ্ঞতা বিনিময় সভায় সভাপতিত্ব করেন উপজেলা কৃষি অফিসার অনিমেষ কুমার বালা। সভায় বক্তব্য রাখেন সুজন-সুশাসনের জন্য নাগরিক মোংলার সভাপতি ফ্রান্সিস সুদান হালদার, পৌর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ কামরুজ্জামান জসিম, সাবেক উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান সাংবাদিক মোঃ নূর আলম শেখ, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মোঃ আনোয়ার-উল-কুদ্দুস, উপজেলা সমবায় অফিসার মোঃ মোস্তফা কামাল, বিএএসডিথর মোংলা এরিয়া ম্যানেজার এডওয়ার্ড এলিও মধু, সাংবাদিক হাসান মাহমুদ, পারমকালচার কৃষক পুলিন রায়, গায়ত্রি রায়, শুক্লা রায় প্রমূখ। সভায় বক্তারা বলেন পারমাকালচার টেকসই কৃষি হলো একটি স্থায়ীত্বশীল উপায় যা পরিবেশ বান্ধব ও দক্ষ উৎপাদন ব্যবস্থা সৃষ্টি করে এবং পৃথিবীর যে কোন স্থানে এর ব্যবহার করা যায়। অভিজ্ঞতা বিনিময় সভায় মোংলার চিলা ইউনিয়নের কাটাখালী গ্রামের কৃষাণী গায়ত্রি রায় বলেন বিএএসডিথর মাধ্যমে প্রশিক্ষণ নিয়ে এবছর সবজি চাষে জৈব সার ও জৈব বালাইনাশক ব্যবহার করে বিগত বছরের তুলনায় ৫০/৬০ ভাগ বেশী পেয়েছি। সুতরাং আমি আর রাসায়নিক সার ও কীটনাশক ব্যবহার করবো না বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছি। অভিজ্ঞতা বিনিময় সভায় অর্ধশতাধিক কৃষাণ-কৃষাণি অংশগ্রহণ করেন।

সাতক্ষীরায় কিশোরী ধর্ষণ ঘটনা ধামা চাপা দিতে ১০ হাজার টাকায় সাংবাদিকের অর্থ বার্ণিজ্যের অভিযোগ

সাতক্ষীরায় কিশোরী ধর্ষণ ঘটনা ধামা চাপা দিতে ১০ হাজার টাকায় সাংবাদিকের অর্থ বার্ণিজ্যের অভিযোগ



আজহারুল ইসলাম সাদী, সাতক্ষীরা প্রতিনিধিঃ
সাতক্ষীরার তালা উপজেলার পাটকেলঘাটা থানার নগরঘাটা ইউনিয়নের বাঁশতলা গ্রামে চাচা কর্তৃক ভাইজী ধর্ষিত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে,
জানা গেছে, বৃহস্পতিবার রাত ৮ টায় নগরঘাটা সিরাজের বাঁশতলা নামক স্থানে এক ভ্যান চালকের কিশোরী মেয়ে (১৫) কে, পার্শ্ববর্তী মৃত্যু সোবহান মোড়লের ছেলে রহিম মোড়ল ধর্ষন করে।
ধর্ষণের ফলে অসুস্থ্য হয়ে পড়লে মেয়েটির পিতা মাতা বাড়িতে আসলে বিষয়টি নিশ্চিত হয়। মেয়েটির পরিবার অতি গরীব হওয়ায় ও লোক লজ্জার ভয়ে শালিশ বা থানা পুলিশ করতে দ্বিধা বোধ করতে থাকে, এরই মাঝে স্থানীয় কতিপয় সাংবাদিক নামধারী জাকির নামের এক ব্যাক্তির সাথে, নিউজ প্রচার না করার শর্তে ১০ হাজার টাকা লেনদেন হয়েছে বলে জানা গেছে।
গরীর অসহায় পরিবারের প্রতি এহেন কর্মকান্ডের সুরাহার জন্য এলাকাবাসী দাবি জানিয়েছেন।

ঝিনাইদহ ভূয়া ডেন্টাল ডাক্তার ও ছেলে আটক দোকান সিল গালা

ঝিনাইদহ ভূয়া ডেন্টাল ডাক্তার ও  ছেলে আটক দোকান সিল গালা






খোন্দকার আব্দুল্লাহ বাশার, ঝিনাইদহ জেলা প্রতিনিধি 



ঝিনাইদহ সদর উপজেলার ডাকবাংলা বাজারে রবিবার দুপুরে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এর অভিযানে দুই ভুয়া ডেন্টাল ডাক্তারকে আটকের পর দোকান সিলগালা করে দেয়া হয়।
জানা গেছে, সম্প্রতি ভয়াবহ করোনা ভাইরাসে মানুষ যখন এক গন্ডির মধ্যে ঠিক তখনই ডাকবাংলা মিনি শহর এলাকায় দীর্ঘদিন ধরে বাবা-ছেলে ভুয়া ডেন্টাল ডাক্তার লোকজনকে ডাক্তার পরিচয় দিয়ে প্রতারণার মাধ্যমে ব্যবসা পরিচালনা করে আসছে, ডাবলু বলেন আমি ৮ম শ্রেণী পাস, আমার অনেক দিনের অভিজ্ঞতা, আমার আরও একটা চেম্বার আছে হরিনাকুন্ডতে।

এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ঝিনাইদহ নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ হেদায়েতুল্লাহ ডাকবাংলা মিনি শহর এর "ফাতেমা ডেন্টাল কেয়ার" এর মালিক ঝিনাইদহ সদর উপজেলার সাধুহাটি ইউনিয়নের রাঙ্গের পোতা গ্রামের মাহতাব উদ্দিন এর ছেলে ভূয়া ডেন্টাল ডাক্তার ডাবলু রহমানকে বাংলাদেশ মেডিকেল এর ডেন্টাল কাউন্সিল আইন ২০১০ এর ২২ ধারায় ৬ মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড ও ডাবলুর ছেলে রাব্বুল ছাত্র হওয়ায় ১৮৬০ এর ১৮৭ ধারায় ১ মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ডে দন্ডিতসহ "ফাতেমা ডেন্টাল কেয়ার" মোবাইল কোর্ট পরিচালনার মাধ্যমে সিল গালা করে দেন। ডাকবাংলা ক্যাম্প ইনচার্জ মোকলেছুর রহমানের সহযোগিতায় এই সিলগালা করেন।

এবিষয়ে ঝিনাইদহের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট হেদায়েতুল্লাহ সাংবাদিকদের জানান, ফাতেমা ডেন্টাল কেয়ার এর মালিক ডাবলু তিনি ডাক্তার হিসাবে পরিচয় দিয়েছেন যেটা বাংলাদেশ মেডিকেল ডেন্টাল কাউন্সিলে দন্ডনীয় অপরাধ  এবং ভ্রাম্যমাণ আদালতের সাথে খারাপ আচরণ ও আক্রমনাত্তক আচরণ করাই ডাবলু রহমানকে মেডিকেল এর ডেন্টাল কাউন্সিল আইনে ৬ মাসের বিনাশ্রম কারান্ড ও ডাবলুর ছেলে রাব্বুল ছাত্র হওয়ায় ১ মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড দন্ডিতসহ "ফাতেমা ডেন্টাল কেয়ার" মোবাইল কোর্ট পরিচালনার মাধ্যমে সিল গালা করা হয়।

মোহাম্মদ নাসিম এবং শেখ মোহাম্মদ আব্দুল্লাহর মৃত্যুতে কাঁদলেন বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

মোহাম্মদ নাসিম এবং শেখ মোহাম্মদ আব্দুল্লাহর  মৃত্যুতে কাঁদলেন বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা


 

দাইয়ানুর রহমান মিষ্টারনুরঃ

আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলির সদস্য ও সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম এবং ধর্ম প্রতিমন্ত্রী শেখ মো. আব্দুল্লাহর মৃত্যুতে সংসদে আনীত শোক প্রস্তাবে আলোচনা করতে গিয়ে কাঁদলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। রাজনৈতিক জীবনে চলার পথ সহজ ছিল না উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘বারবার বাধা (পেয়েছি), কিন্তু যে কজন মানুষ সব সময় খুব পাশে থেকেছে, প্রতিটি ক্ষেত্রে সমর্থন দিয়েছেন তাদের দুজন মানুষকে একসঙ্গে হারালাম এটা সবচেয়ে কষ্টের।’

দুই দিন বিরতির আজ রবিবার বেলা সাড়ে ১১টায় জাতীয় সংসদের মূলতবি অধিবেশন শুরু হয়। স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে শুরু হওয়া অধিবেশনে চলতি সংসদের সদস্য মোহাম্মদ নাসিমের মৃত্যুতে শোক প্রস্তাব নিয়ে আলোচনা শুরু হয়েছে। সংসদ নেতা ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাসহ অন্যান্য সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

সংসদীয় রেওয়াজ অনুযায়ী, অধিবেশনের শুরুতে সম্পুরক কার্যসূচী শোক প্রস্তাব সংসদে উত্থাপন করেন স্পিকার। তিনি আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও ১৪ দলের সমন্বয়ক মোহাম্মদ নাসিমের জীবন বৃত্তান্ত তুলে ধরেন। এসময় ধর্মপ্রতিমন্ত্রী শেখ মো. আব্দুল্লাহ’র জীবন বৃত্তান্তসহ শোক প্রস্তাব উত্থাপন করা হয়। এরপর মোহাম্মদ নাসিমের জীবন ও কর্মের উপর আলোচনা শুরু হয়।

প্রধানমন্ত্রী তার বক্তব্যে মোহাম্মদ নাসিমের পিতা জাতীয় চার নেতা এম মনসুর আলীর কথা স্মরণ করেন। এক পর্যায়ে তিনি বলেন, ‘আমি যখন দেশে ফিরিমোহাম্মদ নাসিম একজন রাজনৈতিক নেতা হিসেবে অত্যান্ত দক্ষ ছিলেন। আমি যখন দেশে ফিরে আসি তখন একটা প্রচেষ্টা ছিল এ শহীদ পরিবারগুলোর ছেলে মেয়েদের একসাথে নিয়ে আসা। আওয়ামী লীগকে পুনরুজ্জীবিত করা এবং শক্তিশালী করা। এ কাজ করতে গিয়ে নাসিম ভাইকে সবসময় আমার পাশে পেয়েছি।’

এসময় বিভিন্ন শাসনামলে মোহাম্মদ নাসিমের উপরে নির্যাতনের বর্ণনা করতে গিয়ে বারবার আবেগতাড়িত হয়ে পড়েন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘খুব দুঃখজনক... আসলে আমার জন্য খুব কষ্টকর হচ্ছে বলতে, এভাবে সবাইকে হারানো খুবই দুঃখজনক।’

ধর্ম প্রতিমন্ত্রী শেখ মো. আব্দুল্লাহ সম্পর্কে বলতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমি (দেশে ফিরে) আসার পর থেকেই আব্দুল্লাহ সাহেবকে পেয়েছি, মনি (শেখ ফজলুল হক মনি) ভাইয়ের সঙ্গে তিনি ছিলেন। আমার নির্বাচন পরিচালনাই শুধু নয়, আমার নির্বাচনী এলাকার সম্পূর্ণ দেখাশোনা তাকে করতে হতো। রাজনীতিতে অনেক কঠিন সময়ের মুখোমুখি হয়েছে গোপালগঞ্জবাসী। যখনই যারা ক্ষমতায় এসেছে, সেটা জিয়াউর রহমান, এরশাদ, খালেদা জিয়া; তাদের যেন একটা লক্ষই ছিল গোপালগঞ্জের উপরে হাত দেয়ার চেষ্টা। আমাদের বহু নেতাকর্মী নির্যাতিত হয়েছেন, তাদের উপর অকথ্য অত্যাচার হয়েছে। সেই দুঃসময়গুলিতে সংগঠনকে ধরে রাখা, সংগঠনের নেতাকর্মীদের দিকে নজর দেয়া, এ কাজগুলো অত্যান্ত দক্ষতার সঙ্গে করে গেছেন আব্দুল্লাহ সাহেব’। 
শোক প্রস্তাবের আলোচনায় অংশ নেন মতিয়া চৌধুরী, অ্যাডভোকেট মুস্তফা লুৎফুল্লাহ, ডা. হাবিবে মিল্লাত, মৃণাল কান্তি দাস।

দিনাজপুরে প্রয়াত মন্ত্রী খুরশীদ জাহান হক’র মৃত্যু বার্ষিক উপলক্ষে জিয়া হার্ট ফাউন্ডেশনে আলোচনা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত

দিনাজপুরে প্রয়াত মন্ত্রী খুরশীদ জাহান হক’র মৃত্যু বার্ষিক উপলক্ষে  জিয়া হার্ট ফাউন্ডেশনে আলোচনা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত




দিনাজপুর প্রতিনিধি ॥ দিনাজপুরে প্রায়ত মন্ত্রী ও বিএনপির চেয়ারপাসন বেগম খালেদা জিয়ার বড় বোন মরহুমা খুরশীদ জাহান হক‘র (চকলেট আপা) ১৪ তম মুত্যৃ বাষিকী পালিত হয়েছে। এ উপলক্ষে মরহুমার কবর জিয়ারত, আলোচনা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।
১৪ জুন রোববার দুপুর ১২ টা কে›ন্দ্রীয় মহিলা দলের আবহায়ক, জেলা বিএনপির সাবেক  সভাপতি, দিনাজপুরের মাটি ও মানুষের নেত্রী সাবেক মন্ত্রী মরহুমা খুরশীদ জাহান হক (চকলেট আপা)’র ১৪ তম মুত্যৃ বাষির্কী উপলক্ষ্যে শহরের ফরিদপুরস্থ কবরস্থানে মরহুমার কবর জিয়ারত করা হয়। 
কবর জিয়ারত শেষে দিনাজপুর জিয়া হার্ট ফাউন্ডেশন এন্ড রিসার্চ  ইনস্টিটিউট এর উদ্যোগে, আলোচনা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। এতে অংশ গ্রহণ করেন দিনাজপুর জিয়া হার্ট ফাউন্ডেশন এন্ড রিসার্চ  ইনস্টিটিউট-এর সাধারণ সম্পাদক এ কে এম আজাদ, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আনোয়ারুল কবীর, যুগ্ম সম্পাদক আবু তাহের আবু, নির্বাহী সদস্য সাবেক সংসদ সদস্য রেজিনা ইসলাম, আফতাব উদ্দিন আহমেদ মন্ডল, হাসপাতালের অন্যান্য চিকিৎসক ও কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ।

দিনাজপুরে প্রয়াত মন্ত্রী খুরশীদ জাহান হক চকলেট আপার ১৪ তম মৃত্যু বার্ষিক পালিত

দিনাজপুরে প্রয়াত মন্ত্রী খুরশীদ জাহান হক চকলেট আপার ১৪ তম মৃত্যু বার্ষিক পালিত




দিনাজপুর প্রতিনিধি ॥ দিনাজপুরে প্রায়ত মন্ত্রী ও বিএনপির চেয়ারপাসন বেগম খালেদা জিয়ার বড় বোন মরহুমা খুরশীদ জাহান হক‘র (চকলেট আপা) ১৪ তম মুত্যৃ বাষিকী পালিত হয়েছে। এ উপলক্ষে মরহুমার কবর জিয়ারত, আলোচনা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।ু
১৪ জুন রোববার দুপুর ১২ টা কে›ন্দ্রীয় মহিলা দলের আবহায়ক, জেলা বিএনপির সাবেক  সভাপতি, দিনাজপুরের মাটি ও মানুষের নেত্রী সাবেক মন্ত্রী মরহুমা খুরশীদ জাহান হক (চকলেট আপার) ১৪ তম মুত্যৃ বাষির্কী উপলক্ষ্যে শহরের ফরিদপুরস্থ কবরস্থানে মরহুমার কবর জিয়ারত করা হয়। কবর জিয়ারত কালে উপস্থিত ছিলেন জেলা বিএনপির সাবেক  সাধারণ সম্পাদক এড্যাভোকেটু মোফাজ্জেল হেসেন দুলাল, বোচাগঞ্জ থানা বিএনপির সভাপতি সাদিক রিয়াজু চৌধুরী পিনাক, কেন্দ্রীয় তাঁতি দলের যুগ্নসম্পাদক ও জেলা তাঁতি দলের সভাপতি রেজাউল ইসলাম, কেন্দ্রীয় তাঁতি দলের সদস্য ও জেলা বিএনপির সদস্য মো: মাহাফুস আহাম্মেদ, জেলা বিএনপির সাবেক যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক ও জেলা যুবদলের সাবেক যুগ্ন আহবায়ক ও জেলা ছাত্রদলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক  মো: শাহীন খান , পৌর বিএরপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক মো: সামসুর জামান চৌধুরী খোকা, জেলা বিএনপির সদস্য মো: মজিবর রহমান, মো: আব্দুস সামাদ, আসলাম খান, জেলা যুবদলের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক গোলাম কিবরিয়া পলাশ জেলা তাঁতি দলের সাধারণ সম্পাদক মো: মামুনুর রশিদ মামুন, কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের সাবেক সদস্য ও জেলা ছাত্রদলের যুগ্ন্ আহবায়ক নূর আলম খোকন, জেলা ছাত্রদলের সিনিয়র সহ সভাপতি মো: ফরিজার রহমান, জেলা ছাত্রদলের এক নম্বর সহ সভাপতি মো: রুবেল ইসলাম,  জেলা বিএনপির সদস্য শরিফ জাকির হোসেন হীরা, নাজমুল হক লিটন, হাবিবুর রহমান , ইউনুস , জাবেদ চুন্ন, বাবু, হাসুু, কাজল , হিলারী, মনুসহ প্রমুখ।

ধর্ম প্রতিমন্ত্রী শেখ মো. আব্দুল্লাহ’র মৃত্যুতে গভীর শোকাহত মনোরঞ্জন শীল গোপাল এমপি

ধর্ম প্রতিমন্ত্রী শেখ মো. আব্দুল্লাহ’র মৃত্যুতে গভীর শোকাহত মনোরঞ্জন শীল গোপাল এমপি




দিনাজপুর প্রতিনিধি॥- ধর্ম প্রতিমন্ত্রী শেখ মো. আব্দুল্লাহ’র মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন দিনাজপুর-১ আসনের সংসদ সদস্য মনোরঞ্জন শীল গোপাল।
শোকবার্তায় এমপি গোপাল বলেন, ধর্ম প্রতিমন্ত্রী শেখ মো. আব্দুল্লাহ প্রধানমন্ত্রীর অত্যন্ত আস্থাভাজন জনপ্রিয় একজন নেতা ছিলেন। তাঁর মৃত্যুতে বাংলাদেশ একজন নিবেদিত প্রাণ রাজনীতিককে হারালো। যা পুরণ হবার নয়। তার বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করেন ও শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান এমপি গোপাল।
উল্লেখ্য, প্রতিমন্ত্রী শেখ মো. আব্দুল্লাহ ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। তিনি ডায়াবেটিসসহ নানা স্বাস্থ্যগত জটিলতায় ভুগছিলেন।

অবৈধ স্থাপনার কারণে খনন কাজ বিঘ্নিত হওয়ায় সরকারী খাল পুনরুদ্ধার অভিযান মোংলার কামারডাঙ্গা খালের উপর ও দুপাশের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ শুরু

অবৈধ স্থাপনার কারণে খনন কাজ বিঘ্নিত হওয়ায় সরকারী খাল পুনরুদ্ধার অভিযান  মোংলার কামারডাঙ্গা খালের উপর ও দুপাশের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ শুরু





মোংলা (বাগেরহাট) প্রতিনিধি

অবৈধ স্থাপনার কারণে খনন কাজ বিঘ্নিত হওয়ায় মোংলার বুড়িরডাঙ্গার কামারডাঙ্গা সরকারী রেকর্ডিয় খালের উপর ও দুইপাশে গড়ে উঠা স্থাপনা উচ্ছেদ কাজ শুরু হয়েছে। রবিবার সকাল থেকে মোংলা ঘাষিয়াখালী আন্তর্জাতিক  নৌ চ্যানেলের এ সংযোগ খাল পুনরুদ্ধার অভিযান শুরু করেন উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) নয়ন কুমার রাজবংশী ও পানি উন্নয়ন বোর্ডের বাগেরহাটের উপ বিভাগীয় প্রকৌশলী মো: আরিফ হোসেন। এ সময় নৌবাহিনী, পুলিশসহ স্থানীয় ভূমি অফিস ও পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকতার্ এবং সংশ্লিষ্ট ঠিকাদারও উপস্থিত ছিলেন। প্রায় ১০ কিলোমিটার দৈর্ঘ্যের এ খালের প্রায় ৬ কিলোমিটার খনন করা গেলেও অবৈধ স্থাপনার কারণে বাকী ৪ কিলোমিটার খননে বিঘ্নের সৃষ্টি হয়। যার প্রেক্ষিতে সরকারী খালের উপর ও দুইপাশের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ কার্যক্রম শুরু করেন সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। খাল ভরাট হয়ে যাওয়ায় খালের দুইপাড়ের খাস জমি দখল করে বহুতল ভবন নিমার্ণ করেন জনৈক আব্বাস জোমাদ্দার, দুলাল জোমাদ্দার ও মো: শহীদ। এছাড়া অন্যান্যরাও কাঁচাঘরবাড়ী নিমার্ণ করে খাস জমি দখলে নিয়ে নেন। রবিবার শুরু হওয়া এ উচ্ছেদ কার্যক্রম আগামী ৩দিন ধরে অব্যাহত থাকবে বলে জানয়িছে অভিযান পরিচালনাকারীরা। 

আনোয়ারায় পুলিশসহ আরও ১৫ জন করোনায় আক্রান্ত

আনোয়ারায় পুলিশসহ আরও ১৫ জন করোনায় আক্রান্ত



মোঃ আরিফুল ইসলাম।
চট্টগ্রাম,প্রতিনিধি।
চট্টগ্রামের আনোয়ারায় দুইজন  ট্রফিক পুলিশসহ নতুন করে  আরও ১৫ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ।
আক্রান্তদের মধ্যে দুইজন ট্রফিক পুলিশের সদস্য, কর্ণফুলী ফার্টিলাইজার কোম্পানি লিঃ (কাফকো) ছয়জন কর্মকর্তা,জিটিভর একজন সাংবাদিক,উপজেলা স্ব‍্যস্হ‍্য কমপ্লেক্সের একজন নার্স ও একজন এনজিও কর্মী রয়েছেন।
এ নিয়ে উপজেলায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ৬২ তে দাড়িয়েছে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা(ইউএনও) শেখ জুবায়ের আহমেদ রবিবার সকালে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। 
উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্রে জানা গেছে, করোনাভাইরাস শনাক্তকরণের জন্য গত মঙ্গল ও বুধবার ৫৩ টি নমুনা সংগ্রহ করে  ফৌজদারহাট  বিআইটিআইডির ল‍্যাবে পাঠায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স। শনিবার রাতে এসব পরিক্ষার ফলাফলে ১৫ জনের করোনা পজেটিভ পাওয়া যায়।
নতুন করে আক্রান্তদের মধ্যে দুইজন ট্রফিক পুলিশ, ছয়জন কাফকো কর্মকর্তা,একজন সাংবাদিক, একজন স্বাস্থ্য কর্মী ও একজন এনজিও কর্মী। বাকী আক্রান্তরা উপজেলার আইরমঙ্গল, চাতরী, বখতিয়ার পাড়া,ও হাজীগাও গ্রামের বাসিন্দা। 
তার মধ্যে তিনজনই চট্টগ্রাম শহরে বসবাস করেন।
আনোয়ারা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি দুলাল মাহমুদ বলেন আনোয়ারায় এ পর্যন্ত ৪০২  নমুনা পরীক্ষা করে ৫৩ জনের করোনা পজিটিভ পাওয়া গেছে। এর মধ্যে ৯ জন সুস্থ ১জন মৃত্যু হয়েছে। আক্রান্তদের সবাই সুস্থ রয়েছেন, তারা হোম আইসোলেশনে থাকবেন।

আলমসাধু থেকে পড়ে ব্যবসায়ীর মৃত্যু!

আলমসাধু থেকে পড়ে ব্যবসায়ীর মৃত্যু!




মোঃ কাওসার আলী, চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রকিনিধিঃ     
চুয়াডাঙ্গা জেলার দামুড়হুদা উপজেলায় আলমসাধু থেকে ছিটকে পড়ে আনারুল ইসলাম নামের এক মাছ ব্যবসায়ীর করুন মৃত্যু হয়েছে।
আজ (১৪ জুন) বেলা ১১ টার দিকে উপজেলার হোগলডাঙ্গা গ্রামে এই দূর্ঘটনা ঘটে।নিহত আনারুল ইসলাম উক্ত হোগলডাঙ্গা গ্রামেরই হানেফ আলীর ছেলে।
গ্রামবাসীরা জানায়,সকালে মাছ বিক্রির জন্য আলমসাধু যোগে বাজারে যাচ্ছিলেন আনারুল ইসলাম।এসময় বেলা ১১ টার দিকে গ্রামের মোড়ে পৌছালে আলমসাধুর পিছনের চাকা খুলে যায়।এতে আলমসাধু থেকে মাছের ড্রামসহ ছিটকে পড়ে আনারুল এবং গাছের সাথে প্রচন্ড ধাক্কা লাগে।এতে গুরুতর আহত হন  আনারুল ইসলাম।তাঁকে উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষনা করেন।
উল্লেখ্য যে,হোগলডাঙ্গা গ্রামের রাস্তাটি যেন মরণফাঁদ।রাস্তার মাঝে মাঝে অনেক বড় বড় গর্ত।মাঝে মাঝেই এই রাস্তায় ভয়ংকর দূর্ঘটনা ঘটে।

দামুড়হুদা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি)বিষয়টি নিশ্চত করেন।

যুক্তরাষ্ট্র থেকে ১০০০ সুরক্ষা সামগ্রী পাঠালেন নোবিপ্রবি'র প্রাক্তন শিক্ষার্থী

যুক্তরাষ্ট্র থেকে ১০০০ সুরক্ষা সামগ্রী পাঠালেন নোবিপ্রবি'র প্রাক্তন শিক্ষার্থী




নোবিপ্রবি  প্রতিনিধি 
নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়(নোবিপ্রবি) করোনাভাইরাস শনাক্তকরণ কেন্দ্রে করোনার নমুনা পরীক্ষা শুরু হয় গত ১১ মে সোমবার হতে। বেশকিছু সঙ্কট আর সমস্যা নিয়েই কেন্দ্রটিতে শুরু হয় নমুনা পরীক্ষা। শুরুর দিকে সঙ্কট কম থাকলেও ধীরে ধীরে সঙ্কট বাড়তে থাকে। কেএননাইন্টিফাইভ মাস্ক, পিপিই, ফেইসশিল্ডসহ বেশকিছু সুরক্ষা সামগ্রী অভাব রয়েছে এই কেন্দ্রটিতে। সূদূর যুক্তরাষ্ট্র থেকেই সুরক্ষা সামগ্রীর অভাবের বিষয়টি জানেন বিশ্ববিদ্যালয়টির চতুর্থ ব্যাচের ফার্মেসি বিভাগের প্রাক্তন শিক্ষার্থী বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী মো. তানভীর মুরাদ। এরপর তিনি  নিজ উদ্যোগে ইউএসএ স্ট্যান্ডার্ড ৪০০ ইউনিট কেএননাইন্টিফাইভ মাস্ক, ১০০ ইউনিট ফেইসশিল্ড, ৫০০ ইউনিট সার্জিক্যাল মাস্ক, ১০ ইউনিট পার্সোনাল প্রটেকশন ইকুইপমেন্ট(পিপিই) পাঠানোর ব্যবস্থা করেন। ইতোমধ্যে তিনি সব সুরক্ষা সামগ্রী যুক্তরাষ্ট্র থেকে বাংলাদেশে কুরিয়ার করেছেন। আগামী ১৪ দিনের মধ্যে এসব সুরক্ষা সামগ্রী নোবিপ্রবিতে পৌঁছাবে বলে নিশ্চিত করেছেন তানভীর মুরাদ। 


এ ব্যাপারে জানতে চাইলে তানভীর মুরাদ বলেন, বাংলাদেশের মানুষের ঋণ কিছুটা শোধ করার চেষ্টায় ১০০০ মেডিক্যাল ইকুইপমেন্ট প্রেরণ করেছি। নোয়াখালী বিজ্ঞান এবং প্ৰযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়  বাংলাদেশের অন্যতম বড়  পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়। আমি এই বিশ্ববিদ্যালয়ের চতুর্থ ব্যাচের একজন প্রাক্তন ছাত্র। আমার ছাত্রজীবনে আমি জনগণের ট্যাক্সের টাকায় সরকারি ছাত্র হলে থেকেছি। সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়েছি। নোয়াখালীর মানুষের অতিথেয়তা আমাকে মুগ্ধ করেছে সব সময়। তাই নোয়াখালী তথা নোবিপ্রবির প্রতি  আমার ভালোবাসা অফুরান। অত্যন্ত দুঃখের সাথে যখন জানলাম নোয়াখালীর সবচেয়ে বড় করোনা টেস্টিং সেন্টারে পর্যাপ্ত সুরক্ষা সামগ্রীর অভাব তখন আমি সাথে সাথে মাইক্রোবায়োলজি বিভাগের চেয়ারম্যান ড. ফিরোজ স্যারের সাথে যোগাযোগ করি। স্যার বাংলাদেশের গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের নিজস্ব করোনা টেস্টিং কিটের উদ্ভাবক।  স্যার আমাকে কেএননাইন্টিফাইভ মাস্কের সঙ্কটের  কথা জানান।  পরবর্তীতে আমি বিশ্ববিদ্যালয়ের আরো কিছু ছোটভাইয়ের  সাথে কথা বলে জানতে পারি ল্যাবটিতে পিপিই, ফেইসশিল্ডসহ বেশকিছু সুরক্ষা সামগ্রীর অভাব আছে। এই ল্যাব বন্ধ হয়ে গেলে নোয়াখালী অঞ্চলের এক কোটি মানুষের করোনা টেস্টিং হুমকির মুখে পড়বে। তাই আমি দেরি না করে এসব মেডিক্যাল ইকুইপমেন্ট সংগ্রহ করি। বাজারের হাজারো মেডিক্যাল ইকুইপমেন্টের মধ্যে  আমি চেষ্টা করেছি আমেরিকান স্ট্যান্ডার্ড সাপোর্ট করে এমন সুরক্ষা সামগ্রী ক্রয় করার। অবশেষে আমি ইউএসএ স্ট্যান্ডার্ড ৪০০ ইউনিট কেএননাইন্টিফাইভ মাস্ক, ১০০ ইউনিট ফেইসশিল্ড, ৫০০ ইউনিট সার্জিক্যাল মাস্ক, ১০ ইউনিট পার্সোনাল প্রটেকশন ইকুইপমেন্ট(পিপিই) কুরিয়ার করতে সক্ষম হয়েছি। বাংলাদেশের মানুষের কাছে আমার অনেক ঋণ। কিছুটা ঋণ শোধ করার চেষ্টাই এই অতি সামান্য উপহার বাংলাদেশের মানুষের জন্য। আল্লাহ আমাদের সকলকে ভালো থাকার তৌফিক দান করুক। ভালো থাকুক নোয়াখালী এবং নোবিপ্রবি, ভালো থাকুক প্রিয় বাংলাদেশ।


উল্লেখ্য,  তানভীর মুরাদ বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রের বোস্টনে বসবাস করছেন। তিনি যুক্তরাষ্ট্রের ক্যামব্রিজ কলেজ থেকে এমবিএ এবং নিও হ্যাম্পশায়ার ইউনিভার্সিটি, যুক্তরাষ্ট্র হতে মাস্টার্স ইন ইনফরমেশন টেকনোলজি সম্পন্ন করে বর্তমানে পিএইচডি করছেন। তিনি বোস্টনে বাংলাদেশে বাংলাদেশী পরিচালিত মসজিদ 'ইসলামিক সোসাইটি অফ নর্থ শো' সহ বোস্টনের সামাজিক ও রাজনৈতিক সংগঠনের সাথে জড়িত। বাংলাদেশিদের সব চেয়ে বড় সংগঠন বেইন এর বিপুল ভোটে নির্বাচিত অ্যাসিস্ট্যান্ট জেনারেল সেক্রেটারি। এছাড়াও তার নিজস্ব বেশ কয়েকটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান রয়েছে।

দৌলতখানে ৪ জনের করোনা শনাক্ত

দৌলতখানে ৪ জনের করোনা শনাক্ত




মোঃ আওলাদ হোসেন 
জেলা প্রতিনিধি,ভোলা, দৌলতখান।

করোনার প্রকোপ যেন কোন ভাবেই কমছে না।বাংলাদেশের ৬৪ টি জেলার মধ্যে দৌলতখানে এর প্রভাব একটু কমই ছিল।কিন্তু ইদানিং এর মাত্রা বাড়তেই আছে।
 ভোলার দৌলতখানে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ৪ জনের শরীরে করোনা ভাইরাস (কোভিড-১৯) শনাক্ত হয়েছে। এদের মধ্যে ১ জন পুলিশের উপ-পরিদর্শক। বাকিরা দৌলতখান পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা। এ নিয়ে উপজেলায় মোট করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৯। এদের মধ্যে ৪ জন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেনবাকিরা হোম আইসোলেশনে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ।

রবিবার সকালে উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা আনিছুর রহমান এ তথ্য নিশ্চিত করে জানান, ৯ জুন করোনার উপসর্গ নিয়ে দৌলতখান হাসপাতালে আসলে এদের নমুনা সংগ্রহ করে বরিশালের শেবাচিম হাসপাতালে পাঠানো হলে ১৩ জুন রাতে রিপোর্টে করোনা পজেটিভ আসে।

তিনি আরো জানান, আক্রান্তদের বসতবাড়ি সহ আশেপাশের বেশ কয়েকটি বাড়িঘর লকডাউন করা হয়েছে। সেই সাথে আক্রান্তদের পরিবারের সদস্যদের হোম কোয়ারেন্টিনে থাকার পরামর্শ দেয়া হয়েছে।

করোনার সর্বশেষ

করোনার সর্বশেষ



নিউজ ডেস্কঃ (১৪ জুন) গত ঘন্টায় করোনা শনাক্ত-৩১৪১, মোট শনাক্ত-৮৭,৫২০,  করোনায় মৃত্যু-৩২, সুস্থ হয়েছেন-৯০৩, নমুনা পরীক্ষা-১৪,৫০৫,
মোট প্রাণহানি-১,১৭১ 
 মোট সুস্থ হয়েছেন -১৮,৬০৩

সিংড়ায় পুর্ব শত্রুতার জের ধরে ছাত্রকে মারপিট

সিংড়ায় পুর্ব শত্রুতার জের ধরে ছাত্রকে মারপিট




সিংড়া ( নাটোর) প্রতিনিধি: 
নাটোরের সিংড়া উপজেলার চামারী ইউনিয়নের মহিষমারী গ্রামে পুর্ব শত্রুতার জের ধরে এনএস সরকারী কলেজের হিসাব বিজ্ঞানের ছাত্র কাবিল হোসেন (২৪) কে মারপিট করেছে প্রতিপক্ষরা।  এসময় তাঁর পিতা এগিয়ে আসলে তাঁকে ও মারপিট করে টাকা ও গোহনা ছিনিয়ে নেয় তারা।  

 জানা যায়, পূর্ব শত্রুতার জের ধরে সুলতান নামে গুরুদাসপুর থানার এক ব্যক্তিকে চোর বলাকে কেন্দ্র করে  শনিবার সকাল ১১টার দিকে মহিষমারী গ্রামের প্রধানরা শালিস ডাকেন।  কিন্তু সুলতান নামে ঐ ব্যক্তির বিরুদ্ধে গুরুদাসপুর থানায় চুরির অভিযোগ থাকায় প্রতিপক্ষরা শালিস না মেনে শালিস থেকে চলে যান।  প্রধানরা চলে যাওয়ার সুযোগে কাবিল হোসেনকে ঐ গ্রামের মহরমের নেতৃত্বে ১০/১২ জন মারপিট করে।  

পরে  কাবিলের পিতা রেজাউল করিম  উদ্ধারে এগিয়ে আসলে তাঁকেও মারপিট করা হয়। এসময় মাছ বিক্রির নগদ ১ লক্ষ ২০ হাজার টাকা এবং সোনার চেন ও আংটি ছিনিয়ে নেয় প্রতিপক্ষরা। 

কাবিল হোসেন জানান, সুলতানের সাথে তাদের ব্যবসায়ীক কোনো সম্পর্ক থাকায় প্রতিপক্ষরা আমাকে অন্যাভাবে মারপিট এবং  নগদ টাকা ও সোনার গহনা ছিনিয়ে নিয়েছে। 

 চামারী ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মাহিম আহমেদ মহসিন ও বর্তমান সাধারন সম্পাদক ইব্রাহিম খলিলুল্লাহ বলেন, কাবিল হোসেন কে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে  চোর বলা কথা কে কেন্দ্র করে মারপিট করা হয়েছে। অথচ তাঁর কোনো অপরাধ ছিলো না।  তাঁকে অন্যায়ভাবে মারপিট করা হয়েছে। পরে স্থানীয়দের সহায়তায় উদ্ধার করে চিকিৎসা দেয়া হয়। 

এ বিষয়ে শনিবার রাতে কাবিলের পিতা রেজাউল করিম রেজা সিংড়া থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন।

কালিগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সড়কের বেহালদশা দেখার কেউ নেই!

কালিগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সড়কের বেহালদশা দেখার কেউ নেই!



আজহারুল ইসলাম সাদী, সাতক্ষীরা প্রতিনিধিঃ
সাতক্ষীরা জেলার কালিগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স প্রধান সড়কটির একাধিক স্থান ভেঙে গিয়ে খাদ,নালার সৃষ্টি হওয়ার কারনে, বৃষ্টির দিনে, জনসাধারণের চলাচলের বিশেষ করে রুগি বাহি এ্যাম্বুলেন্স,ফায়ারসার্ভিস,খাদ্য সরবরাহকারী পরিবহন সহ,সাধারণ মানুষ অনেক সমস্যার মধ্যে দিন পার করে আসছে?
রাস্তাটির এমন ভগ্নদশার কারণে মাঝে মাঝে সড়ক দুর্ঘটনা ঘটে চলেছে, যার ফলে অনেকের পঙ্গুত্ব বরণ করতে হয়েছে।
রাস্তাটি যাহাতে দ্রুত সংস্করণ করা হয় তাহার বিহিত ব্যাবস্থা করার জন্য সংশ্লিষ্ট উর্ধতন কর্তৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন ভুক্তভোগী জনসাধারণ।

ঝিনাইদহ শৈলকূপায় ইয়াবা সহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার

ঝিনাইদহ শৈলকূপায় ইয়াবা সহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার




সম্রাট হোসেন শৈলকুপা উপজেলা (ঝিনাইদহ)প্রতিনিধিঃ 


ঝিনাইদহ শৈলকুপায় ২০০ পিস ইয়াবা ট্যাবলেটসহ 
তরিকুল ইসলাম ওরফে খোকনকে 
গ্রেফতার করেছে পুলিশ 
১৪ জুন রবিবার 

ঝিনাইদহ পুলিশ সুপার মোঃ হাসানুজ্জামান পিপিএম গোপন সূত্রে খবর পেয়ে একদল পুলিশকে অভিযানে পাঠান । শৈলকুপা থানা 
পুলিশ অভিযান চালিয়ে শৈলকুপার শিতালীডাঙ্গা গ্রামের জনৈক মোঃ সামছুল হক মন্ডলের কাঁঠাল বাগানের মধ্যে হতে ২০০ (দুইশত) পিস ইয়াবাসহ মোঃ তরিকুল ইসলাম ওরফে খোকনকে (৩৬) গ্রেফতার করে । খোকন শিতালীডাঙ্গা (পূর্বপাড়া) গ্রামের আনোয়ার হোসেনের ছেলে ।

মোহাম্মাদ নাসিমের মৃত্যুতে এমপি ইসরাফিল আলমের শোক প্রকাশ

মোহাম্মাদ নাসিমের মৃত্যুতে এমপি ইসরাফিল আলমের শোক প্রকাশ






মোঃ ফিরোজ হোসাইন 
রাজশাহী ব্যুরো

জাতীয় চার নেতার অন্যতম ক্যাপ্টেন এম মনসুর আলীর সুযোগ্য সন্তান, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রেসিডয়াম সদস্য ও উত্তর জনপদের প্রাণপুরুষ জননেতা মোহাম্মদ নাসিম এমপি ইন্তেকাল করেছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)।
মোহাম্মদ নাসিম এর মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন নওগাঁ -৬ (আত্রাই -রানীনগর) আসনের সংসদ সদস্য, বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য, জননেতা জনাব ইসরাফিল আলম এমপি ।সেই সাথে মরহুমের পরিবারের সদস্যদের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন তিনি।
মোহাম্মাদ নাসিমের মৃত্যুতে জাতী হারালো মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তির অন্যতম সিপাহীশালার। এদেশের গণতান্ত্রিক আন্দোলন, স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলন এবং সামরিক সরকারগুলোর বিরুদ্ধে এবং সাম্প্রদায়িক শক্তির বিরুদ্ধে জাতিকে ঐক্যবদ্ধ করতে তিনি আমরণ লড়াই করে গেছেন। তাঁর মৃত্যুতে জাতি হারালো এক রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বকে।
এমপি ইসরাফিল আলম তার ফেসবুকে মোহাম্মদ নাসিমের মৃত্যুর পর স্মৃতিচারন করেন।

অনেক দিনের অনেক স্মৃতি অনেক স্নেহ অনেক প্রীতি।
অনেক কথা নিত্য নীতির অনেক বাণী অনেক গীতির। দুঃখ- সুখের কথা ভুলে
আপন পর পেছনে ফেলে।
লক্ষ ভক্তের অশ্রুঝরা
আর্তনাদে আত্মহারা।
পাঁচ দশকের কর্ম ছেড়ে
আজ আপনি গেলেন চলে।
জানি আর দেখিবেনা কেউ
গালভরা সেই হাসির ঢেউ।
শুনিবে না কেউ বজ্র হু়ংকার
উঠিবেনা আর দ্রোহের ঝংকার।
অনাদিকাল তবুও বাঁচিবে
বারবার ফিরিয়া আসবে।
মুক্তির প্রকম্পিত মিছিলে
জাতি গঠনে ভাবনার নিখিলে।
মগ্ন হোক চিরনিদ্রিত তব চিত্ত
প্রভাত প্রাণে জাগ্রত রবে নিত্য ।

নওগাঁর আত্রাইয়ে কাগজের ফুল ব্যবসায়ীদের মানবেতর জীবন যাপন

নওগাঁর আত্রাইয়ে কাগজের ফুল ব্যবসায়ীদের মানবেতর জীবন যাপন





 মোঃ ফিরোজ হোসাইন
 রাজশাহী ব্যুরো

বর্তমান করোনা পরিস্থিতির কারনে নওগাঁর আত্রাই উপজেলার কাগজের ফুল খ্যাত জামগ্রামের ফুল ব্যবসায়ীদের চরম দুর্দিন যাচ্ছে। দেশের কোন অঞ্চলে ফুল নিয়ে যেতে না পারায় গত প্রায় তিন মাস থেকে ওই গ্রামের শত শত ফুল ব্যবসায়ীদের মানবেতর জীবন যাবন করতে হচ্ছে। 
জানা যায়, আত্রাই উপজেলার জামগ্রামের অধিকাংশ নারী পুরুষ কাগজের ফুল তৈরি ও বিক্রি পেশার সাথে জড়িত। এক সময় এ ফুল ব্যবসা হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকদের মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকলেও বর্তমানে ওই গ্রামের হিন্দু মুসলমান প্রতিটি পরিবারই এ ব্যবসায় জড়িয়ে পড়েছে। আগে এলাকার বিভিন্ন পুঁজা ও উৎসবকে কেন্দ্র করে তারা কাগজের ফুল তৈরি করে এলাকায় বিক্রি করতো। এখন আর কোন পুঁজা, মেলা বা উৎসব নয় বরং বছরের সব সময় এ ফুল তৈরি করে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে বিক্রি করে থাকে। বাড়িতে গৃহবধু ও নারীরা ফুল তৈরি করেন আর পুরুষরা বিভিন্ন জেলায় ঘুরে ঘুরে এ ফুল বিক্রি করে সংসারের বাড়তি আয় করেন। কিন্তু বর্তমানে করোনাভাইরাসের কারনে মুখ থুবরে পড়েছে তাদের ফুল ব্যবসা। সংসারে দেখা দিয়েছে অভাব অনটন। ফলে অনেকে নতুন নতুন পেশায় নিয়োজিত হতে বাধ্য হচ্ছেন।
জামগ্রামের নীরেন মালাকার বলেন, আগে আমরা রাজধানী ঢাকা, খুলনা, যশোর, সিলেটসহ দেশে বিভিন্ন জেলায় গিয়ে ফুল বিক্রি করতাম। ফুল বিক্রির অর্থ দিয়ে সংসারের ব্যয়ভার বহন করতাম। করোনাভাইরাসের কারনে গত প্রায় তিন মাস থেকে আমরা আর বাইরে কোথাও যেতে পারছি না। ফলে আমাদের আয় ইনকাম কমে যাওয়ায় পরিবার পরিজন নিয়ে আমাদের মানবেতর জীবন যাপন করতে হচ্ছে। বাধ্য হয়ে আমরা অন্য কোন পেশা অবলম্বনের চেষ্টা করছি। ওই গ্রামের রমজান আলী ও সাইদুর রহমান বলেন, এই গ্রামের শতকরা ৮০ ভাগ লোক ফুল ব্যবসার সাথে জড়িত। আমরা নারী পুরুষ সবাই মিলে বাড়িতে ফুল তৈরি করি আবার এ ফুল নিয়ে পুরুষরা বিভিন্ন জেলায় বিক্রি করে থাকি। এটি আমাদের একটি ঐতিহ্যে পরিণত হয়েছে। করোনাভাইরাসের কারনে আমাদের ঐতিহ্য বিনষ্ট হতে চলেছে। আমরা দীর্ঘদিন থেকে এ পেশার সাথে জড়িত থাকায় এখন নতুন করে অন্য পেশায় আত্য নিয়োগও করতে পারছি না। ফলে আমাদের পরিবারে দেখা দিয়েছে চরম হতাশা।

নাটোর বড়াইগ্রামে মাইক্রোবাস-ট্রাকের সংঘর্ষে চালক নিহত

নাটোর বড়াইগ্রামে মাইক্রোবাস-ট্রাকের সংঘর্ষে চালক নিহত





রাজশাহী ব্যুরো
নাটোরের বড়াইগ্রামে মাইক্রোবাস ও ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষে শরিফুল ইসলাম, শফিক (৪৫) নামের মাক্রোচালক নিহত হয়েছে। রোববার ভোর ৬ টার দিকে নাটোর-বনপাড়া মহাসড়কের গড়মাটি মুচিপাড়া এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত চালক চট্রগ্রাম জেলার মিরশরাইল উপজেলার মিরশরাই গ্রামে মৃত মখলেসুর রহমানের ছেলে। 
ফায়ার সার্ভিস সুত্রে জানা যায়, পাবনা থেকে চট্রগ্রামগামী মাইক্রোবাস (ঢাকা মেট্রো ঢ ১৬-০৬৩৫) নাটোর থেকে পাবনাগামী  ট্রাক (ঢাকা মেটো ট ২২-৪৫৪৬) গড়মাটি মুচিপাড়া এলাকায় পৌছলে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্'লেই মাইক্রোচালক নিহত হয়। মাইক্রোবাসটি পাবনার ইশ্বরদীতে যাত্রী  নামিয়ে ঢাকায় ফিরতেছিল। 
বনপাড়া হাইওয়ে থানার এস.আই মখলেসুর রহমান দুর্ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান যে, দুর্ঘটনায় কবলিত ট্রিাক ও মাইক্রোবাসটি আটক করা হয়েছে। এ বিষয়ে আইনানুগ ব্যবসা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

বিশ্ব রক্তদাতা দিবসে "বন্ধন সেচ্ছায় রক্তদান সংগঠন" পক্ষ থেকে দেশবাসীকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন

বিশ্ব রক্তদাতা দিবসে "বন্ধন সেচ্ছায় রক্তদান সংগঠন" পক্ষ থেকে দেশবাসীকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন

 
হাসান সাদী,নাগরপুর(টাংগাইল) প্রতিনিধিঃ

বিশ্ব রক্তদাতা দিবসে আজ ১৪জুন সকল রক্তদাতাকে "ঝিকরগাছা ব্লাড ব্যাংক" এর পক্ষে থেকে রক্তিম শুভেচ্ছা ও ভালোবাসা জ্ঞাপন করেছে। 

রক্তদাতা দিবসঃ
১৪ জুন বিশ্ব রক্তদাতা দিবস। যারা স্বেচ্ছায় ও বিনামূল্যে রক্তদান করে লাখ লাখ মানুষের প্রাণ বাঁচাচ্ছেন তাদেরসহ সাধারণ জনগণকে রক্তদানে উৎসাহিত করাই এ দিবসের উদ্দেশ্য।

১৯৯৫ সাল থেকে আন্তর্জাতিক রক্তদান দিবস পালন এবং ২০০০ সালে ‘নিরাপদ রক্ত’-এই থিম নিয়ে পালিত বিশ্ব স্বাস্থ্য দিবসের অভিজ্ঞতা নিয়ে ২০০৪ সালে প্রথম পালিত হয়েছিল বিশ্ব রক্তদান দিবস। ২০০৫ সালে বিশ্ব স্বাস্থ্য অধিবেশনের পর থেকে প্রতিবছর বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাও এ দিবস পালনের জন্য তাগিদ দিয়ে আসছে।

রক্ত দিলে হয়না ক্ষতি,
জাগ্রত করে মানবিক অনুভূতি                               
 শুভেচ্ছান্তে :---                                          ডা.এম.এ.মান্নান                                 সাংগঠনিক সম্পাদক                          বন্ধন সেচ্ছায় রক্তদান সংগঠন।          কেন্দ্রীয় কমিটি,বাংলাদেশ।

দিনাজপুরে ২৮ লাখ ৫৫ হাজার টাকার শিক্ষা উপবৃত্তির চেক বিতরণ

দিনাজপুরে ২৮ লাখ ৫৫ হাজার টাকার শিক্ষা উপবৃত্তির চেক বিতরণ



দিনাজপুর প্রতিনিধি : দিনাজপুরে ২৮ লাখ ৫৫ হাজার ৪’শ টাকার শিক্ষা উপবৃত্তির চেক বিতরণ করা হয়েছে। শহর সমাজসেবা কার্যালয়ের অধীনে ২০১৯-২০ অর্থবছরে বিভিন্ন খাতে সামাজিক নিরাপত্তার বৃদ্ধিকৃত উপকারভোগীদের মাঝে এ চেক বিতরণ করেন দিনাজপুর জেলা প্রশাসক মো. মাহমুদুল আলম।
দিনাজপুর শিশু একাডেমী মিলনায়তনে করোনাভাইরাস বিস্তার রোধে সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে ২’শ ৫৫ জন প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীদের মাঝে ৩ লাখ ৬৪ হাজার ২’শ টাকা, অনগ্রসর জীবনগোষ্ঠীর জীবনমান উন্নয়ন কর্মসূচীর আওতায় ১৬ জন শিক্ষার্থীদের মাঝে ১ লাখ ৭০ হাজার ৪’শ টাকা, হিজড়া জনগোষ্ঠীর জীবনমান উন্নয়ন কর্মসূচীর আওতায় ১৭ জন শিক্ষার্থীর মাঝে ১ লাখ ৫৮ হাজার ৪’শ টাকা আর অনগ্রসর জীবনগোষ্ঠীর জীবনমান উন্নয়নে ১৫ জনের মধ্যে ৯০ হাজার টাকা ভাতার চেক প্রদান করেন তিনি।অনুষ্ঠানে জেলা সমাজসেবা কার্যালয়ের উপ পরিচালক মো. আবুবকর সিদ্দীক এর সভাপতিত্বে সার্বিক তত্ত্বাবধানে ছিলেন শহর সমাজসেবা কর্মকর্তা মো. মাইনুল ইসলাম।

দিনাজপুরে আবাসিক মেডিকেল অফিসার(আরএমও)সহ নতুন আরো ১১ জন করোনা আক্রান্তসহ জেলায় মোট আক্রান্ত ৩৯৮ জন

দিনাজপুরে আবাসিক মেডিকেল অফিসার(আরএমও)সহ নতুন আরো ১১ জন করোনা আক্রান্তসহ জেলায় মোট আক্রান্ত ৩৯৮ জন




দিনাজপুর প্রতিনিধি :দিনাজপুরে আরএমও ডা: মো: পারভেজ সোহেল রানা ও তাঁর এক অফিস সহায়কসহ নতুন করে আরো ১১ জন করোনায় আক্রান্ত। শনিবার পর্যন্ত জেলায় করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৩৯৮ জন। নতুন ২৪ জনসহ ১৪৪ জন সুস্থ হয়ে বাড়ী ফিরেছে।গত ২৪ ঘন্টায় ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট দিনাজপুর জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার নতুন আক্রান্ত ১১ জনের মধ্যে সদর উপজেলায় ৪ জন, পার্বতীপুরে দুইজন, বিরলে দুইজন, বীরগঞ্জে একজন, চিরিরবন্দরে একজন ও বোচাগঞ্জ উপজেলায় একজন। আর নতুন সুস্থ ২৪ জনের মধ্যে সদর উপজেলায় ৩ জন, ঘোড়াঘাটে ১৫ জন, বোচাগঞ্জে ৩ জন ও কাহারোল উপজেলায় ৩ জন। দিনাজপুর সিভিল সার্জন ডা. মো. আব্দুল কুদ্দুছ শনিবার (১৩ জুন) রাত ৯টায় সাংবাদিকদের জানান, গত ২৪ ঘন্টায় জেলায় নতুন আরো ১১ জন করোনায় আক্রান্ত এবং  জেলায় মোট করোনায় আক্রান্ত রোগির সংখ্যা দাড়ালো ৩৯৮ জন। জেলায় নতুন আরো ২৪ জনসহ ১৪৪ জন সুস্থ হয়েছে। এ পর্যন্ত ৬ জনের মৃত্যবরন করেছে। আক্রান্ত ৩৯৮ জনের মধ্যে পুরুষ ২৮৭ জন, নারী ৯৪ জন ও শিশু ১৭ জন।সিভিল সার্জন জানান, করোনায় আক্রান্ত ৩৯৮ জনের মধ্যে দিনাজপুর সদর উপজেলায় ১১৯ জন (মৃত একজনসহ), কাহারোলে ১৩ জন, বিরলে ৩৭ জন, বোচাগঞ্জে ১১ জন (মৃত একজনসহ), পার্বতীপুরে ৩৪ জন (একজন মৃতসহ), ফুলবাড়ীতে ১৪ জন, নবাবগঞ্জে ২৫ জন, হাকিমপুরে ৫ জন, খানসামায় ২২ জন, বিরামপুরে ৩২ জন, ঘোড়াঘাটে ৩১ জন, চিরিরবন্দরে ৩৬ জন (মৃত দুইজনসহ) ও বীরগঞ্জ উপজেলায় ১৮ জন।অপরদিকে সুস্থ ১৪৪ জনের মধ্যে দিনাজপুর সদর উপজেলায় ৩১ জন, ফুলকাড়ীতে ৩ জন, নবাবগঞ্জে ১২ জন, পার্বতীপুরে ১৩ জন, কাহারোলে ১০ জন, বোচাগঞ্জে ৮ জন, হাকিমপুরে দুইজন, ঘোড়াঘাটে ১৯ জন,  বিরামপুরে ৩ জন, বিরলে ২৩ জন, বীরগঞ্জে ১২ জন, খানসামায় ৬ জন ও চিরিরবন্দর উপজেলায় দুইজন।এছাড়া বর্তমানে হোম আইসোলেশনে রয়েছেন ২১০ জন, প্রাতিষ্ঠানিক আইসোলেশনে রয়েছেন ২৭ জন, হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন ১১ জন ও মৃত্যুবরণ করেছেন ৬ জন। সিভিল সার্জন ডা. মো. আব্দুল কুদ্দুছ জানান, শনিবার মোট ৮১টি নমুনার ফলাফল পাওয়া গেছে যার মধ্যে ১১টি নমুনার ফলাফল পজিটিভ, দুইটি নমুনার ফলাফল ফলোআপ পজিটিভ ও বাকী ৬৮টি নমুনার ফলাফল নেগেটিভ এসেছে। আর এ পর্যন্ত ৫১৯৭টি নমুনা পরীক্ষার জন্য ল্যাবে পাঠানো হয়েছে। এর মধ্যে ৪৭৬৮টি নমুনার ফলাফল পাওয়া গেছে। এছাড়া শনিবার ১২২টি নমুনা পরীক্ষার জন্য দিনাজপুরে ল্যাবে পাঠানো হয়েছে। সিভিল সার্জন আরো জানান, গত ২৪ ঘন্টায় ১৫৫ জনসহ এ পর্যন্ত ১০ হাজার ৮৬৪ জনকে হোম কোয়ারেন্টইনে পাঠানো হয়েছে ও হোম কোয়ারেন্টইন হতে ছাড় পেয়েছেন ৮ হাজার ১৩১ জন। বর্তমানে হোম কোয়ারেন্টইনে আছেন ২ হাজার ৭৩৩ জন। 
এছাড়া প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টইনে পাঠানো হয়েছে ৩২১ জনকে ও প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টইন হতে ছাড় পেয়েছেন ৩০৭ জন ও বর্তমানে ১৪ জন প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টইনে রয়েছে।

অবশেষে চুয়াডাঙ্গাতে করোনা পরীক্ষা

অবশেষে চুয়াডাঙ্গাতে করোনা পরীক্ষা





মোঃ কাওসার আলী, চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধিঃ 
খুলনা বিভাগের মধ্যে করোনা আক্রান্ত অন্যতম জেল হলো এই চুয়াডাঙ্গা।এটি বর্তমানে রেড জোনের অন্তর্ভুক্ত।এতো কিছুর মধ্যেও কিছুটা স্বস্তির খবর এবার চুয়াডাঙ্গাতে হবে করোনা পরীক্ষা।
কিন্তু করোনা পরীক্ষা করতে হলে কয়েকটা ধাপ অনুসরণ করতে হবে এবং ধাপগুলো হলোঃ
(১)প্রথমে সদর হাসপাতালে ঢুকে আপনাকে বামদিকের টিকিট কাউন্টার থেকে ৫ টাকার একটা টিকিট কাটতে হবে এবং সেখানকার কর্তব্যরত ব্যক্তিকে জিজ্ঞাসা করতে হবে যে আপনি করোনা পরীক্ষা করাতে চান।
(২) তখন তিনি আপনাকে নতুন বিল্ডিংয়ের ১২৪,১২৫,১২৬ নং রুমে যেতে বলবেন।ঐসব রুমের কর্তব্যরত ডাক্তার আপনাকে সাইন করা একটা কাগজ দিবে।সেটা নিয়ে আপনাকে পুরাতন বিল্ডিংয়ের আরএমও এর অফিসে আসতে হবে।আসার পর আরএমও আপনাকে একটা ফরম দিবেন।আপনি সেটা যথাযথভাবে পূরন করবেন একং ফরমের তিনটা ফটোকপি করবেন।উল্লেখ্য যে আপনি কিন্তু আরএমও স্যারের সাইন নিবেন।
(৩)ফটোকপির এক কপি আরএমও অফিসে জমা দিবেন এবং বাকি তিন কপি নিয়ে আপনি ১১৬ নং রুমে যাবেন।মনে রাখবেন যে এই ১১৬ নং রুমই হলো প্যাথলজি রুম।
(৪)এই ১১৬ নং রুমের সামনে কর্তব্যরত ব্যক্তিকে জিজ্ঞেস করলেই তারা ডেকে আপনার স্যাম্পল(নমুনা) সংগ্রহ করবেন।
আর মনে রাখবেন এই কাজটি করবেন বেলা ১১-১২ টার মধ্যেই।

এখন জনমনে প্রশ্ন একজন করোনা আকান্ত ব্যাক্তি যদি উক্ত কাজগুলো করে তাহলে হাসপাতাল কতটা ঝুকিমুক্ত থাকবে??তাই জনগণের চাওয়া করোনা পরীক্ষার ধাপগুলো সহজ করা হোক এবং সেটা আলাদা একক বিল্ডিংয়ে হোক।

যশোরের শার্শায় স্কুল ছাত্রীকে বিয়ে করায় শিক্ষক রাসেলের নামে ১ম স্ত্রীর মামলা

যশোরের শার্শায় স্কুল ছাত্রীকে বিয়ে করায় শিক্ষক রাসেলের নামে ১ম স্ত্রীর মামলা




বেনাপোল প্রতিনিধি: যশোরের শার্শা উপজেলার শার্শা সরকারি পাইলট মডেল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের মোছাঃ আফসানা মিম নামে এক ছাত্রীর সাথে অনৈতিক সম্পর্ক গড়ে তোলা ও পরে বিয়ে করায় ওই স্কুলের সহকারী শিক্ষক রাসেল আহমেদের (৩৬) বিরুদ্ধে শার্শা উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে অভিযোগ দাখিল করেছেন তার প্রথম স্ত্রী মোছাঃ শাহনাজ পারভীন লিজা (২৭)।অভিযুক্ত শিক্ষক রাসেল আহমেদ যশোর জেলার ঝিকরগাছা উপজেলার কুল্লা গ্রামের নজরুল ইসলামের ছেলে।তিনি ওই প্রতিষ্ঠানের সহকারি শিক্ষক (বিজ্ঞান) হিসাবে কর্মরত আছেন। তার ঘরে স্ত্রী রয়েছে। রাসেল আহমেদ আশরা তাসফিয়া হৃদিতা (০৯) নামে এক কন্যা সন্তানের জনক। এই ঘটনায় এলাকায় হইচই পড়ে গেছে। স্থানীয় একাধিক সূত্র জানায়, ক্লাস নেয়ার পাশাপাশি প্রাইভেট পড়ানোর সূত্র ধরে শার্শা সরকারি পাইলট মডেল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ঐ ছাত্রীর সাথে প্রেমজ সম্পর্ক গড়ে তোলেন ওই প্রতিষ্ঠানেরই শিক্ষক রাসেল। এক পর্যায়ে প্রথম স্ত্রীর অনুমতি ব্যতিত গোপনে গত ১৭-০৩-২০২০ ওই ছাত্রীকে বিয়ে করেন রাসেল। অভিযোগকারী স্ত্রী লিজা জানান, গত ২০০৬ সালে রাসেল তাকে ভালবেসে বিয়ে করে। তাদের ঘরে একটি কন্যা সন্তান আছে। তাদের বিয়ের পর থেকে বিভিন্ন অজুহাতে তাকে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করত রাসেল ও তার পরিবার। এমতাবস্থায় শার্শা সরকারি পাইলট মডেল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে রাসেলের চাকরি হয়। এবং আস্তে আস্তে রাসেল বিদ্যালয়ের অনেক মেয়ের সাথে অনৈতিক সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ে। বিষয়টি জানতে পারলে তাকে জিজ্ঞাসা করলে সে লিজাকে একাধিকবার তার মেয়ের সামনে শারীরিক নির্যাতন করে। তাকে গ্রামে রেখে রাসেল নাভারনে ঘর ভাড়া করে সেখানে মিম নামের মেয়ের সাথে থাকত। বিষয়টি জানাজানি হলে সংসারে অশান্তির ভয়ে লিজাকে সেই বাসায় তোলে এবং সেখানেও একাধিক মেয়েকে পড়ানোর নামে নিয়ে আসত। এই সমস্ত বিষয় তার পরিবার জানা সত্তেও এবং বারবার বলা সত্তেও তারা কোন পদক্ষেপ নেয়নি বরং অভিযোগ করলে তাকে নির্যাতন করত। তার এই অনৈতিক কর্মকান্ডে সবসময় সাহস জুগিয়েছে রাসেলের খালা একই বিদ্যালয়ের শিক্ষিকা তাসলিমা আক্তার ও তার পরিবার। এবং তাসলিমা আক্তার এই সমস্ত বিষয়ে অবগত এবং তার সহায়তায় রাসেল এই অপকর্ম করে আসছে। তিনি আরো জানান, কিছুদিন আগে রাসেল মোটর সাইকেলে এক্সিডেন্ট করলে তার একটা পা ভেঙ্গে যায়। এই সুযোগে তার খালা তাসলিমা আক্তারের মাধ্যমে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষককে বুঝিয়ে বিদ্যালয়ের একটা রুমে ২৪ ঘন্টা থেকে প্রাইভেট ও ক্লাস নেওয়ার ব্যবস্থা করেন। গোপন সূত্রে জানতে পারি মিম সেখানে তার সাথে রাতে থাকত অথচ এই ব্যাপারে কোন পদক্ষেপ নেয়নি কেউ। নানান অযুহাতে আমাকে গ্রামে অথবা বাপের বাড়ি পাঠিয়ে দিয়ে মিমের সাথে রাত কাটায়। আমার একটা মেয়ে এই অবস্থায় আমি আমার মেয়ের ভবিষ্যৎ নিয়ে চিন্তিত। আমি এই নারীলোভী ব্যক্তির দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানায়। স্থানীয় অভিভাবকদের কাছে জানতে চাইলে তারা বলেন, আমরা আমাদের সন্তানদের বিদ্যালয়ে পাঠায় সুশিক্ষায় শিক্ষিত করে ভাল মানুষ হওয়ার জন্য। যেখানে এমন একজন শিক্ষক থাকে সেইখানে মেয়েদের কোন নিরাপত্তায় নেই। আমরা এর আগেও তার নামে একাধিক মেয়ের সাথে অনৈতিক সম্পর্কের বিষয়ে শুনেছি। এইরকম শিক্ষককে বিদ্যালয় থেকে বের করে দেয়ার জন্য এলাকাবাসী জোর দাবি জানান।
আরো আসছেঃ শার্শা পাইলট হাইস্কুলের শিক্ষক রাসেলের যত কুকীর্তি।

বিশ্ব রক্তদাতা দিবসে ঝিকরগাছা ব্লাড ব্যাংকের পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা

বিশ্ব রক্তদাতা দিবসে ঝিকরগাছা ব্লাড ব্যাংকের পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা




মোঃ ইকরামুল করিম সৈকত ঝিকরগাছা (যশোর)  প্রতিনিধিঃ

বিশ্ব রক্তদাতা দিবসে আজ ১৪জুন সকল রক্তদাতাকে "ঝিকরগাছা ব্লাড ব্যাংক" এর পক্ষে থেকে রক্তিম শুভেচ্ছা ও ভালোবাসা জ্ঞাপন করেছে। 

রক্তদাতা দিবসঃ
১৪ জুন বিশ্ব রক্তদাতা দিবস। যারা স্বেচ্ছায় ও বিনামূল্যে রক্তদান করে লাখ লাখ মানুষের প্রাণ বাঁচাচ্ছেন তাদেরসহ সাধারণ জনগণকে রক্তদানে উৎসাহিত করাই এ দিবসের উদ্দেশ্য।

১৯৯৫ সাল থেকে আন্তর্জাতিক রক্তদান দিবস পালন এবং ২০০০ সালে ‘নিরাপদ রক্ত’-এই থিম নিয়ে পালিত বিশ্ব স্বাস্থ্য দিবসের অভিজ্ঞতা নিয়ে ২০০৪ সালে প্রথম পালিত হয়েছিল বিশ্ব রক্তদান দিবস। ২০০৫ সালে বিশ্ব স্বাস্থ্য অধিবেশনের পর থেকে প্রতিবছর বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাও এ দিবস পালনের জন্য তাগিদ দিয়ে আসছে।

রক্ত দিলে হয়না ক্ষতি,
জাগ্রত করে মানবিক অনুভূতি।

বিশ্ব রক্তদাতা দিবসে ব্লাড ফর লাইফ ইন বাংলাদেশ পক্ষে থেকে রক্তিম শুভেচ্ছা ও ভালবাসা,

বিশ্ব রক্তদাতা দিবসে  ব্লাড ফর লাইফ ইন বাংলাদেশ  পক্ষে থেকে রক্তিম শুভেচ্ছা ও ভালবাসা,




মিঠুন কুমার রাজ, 
পিরোজপুর জেলা প্রতিনিধি। 

প্রতি দিন বিশ্বে রক্তের অভাবে বহু মানুষের প্রাণ গেলেও সুস্থ মানুষেরা অনেকেই রক্তদান সম্পর্কে ভুল ধারণা পোষণ করেন, । রক্তদান সম্পর্কে সচেতনতা গড়ে তুলতে প্রতি বছর ১৪ জুন বিশ্ব রক্তদাতা দিবস পালিত হয় সারা বিশ্বে।


রক্তদান জীবন দান। কথাটার সঙ্গে আমরা সকলেই পরিচিত। অথচ রক্তদানের প্রয়োজনীয়তা সম্পর্কে সচেতনতা, সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেওয়ার মানসিকতা এখনও আমাদের মধ্যে গড়ে ওঠেনি। 
 রক্তদান সম্পর্কে সচেতনতা গড়ে তুলতে প্রতি বছর ১৪ জুন ওয়ার্ল্ড ব্লাড ডোনর ডে পালিত হয় সারা বিশ্বে। ২০০৪ সাল থেকে প্রতি বছর এই দিন পালিত হচ্ছে বিশ্ব রক্তদাতা দিবস। এই বছর দুর্ঘটনা বা জরুরিকালীন অবস্থায় রক্তদানের প্রয়োজনীয়তা নিয়ে সচেতনতা গড়ে তুলতে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার বিশেষ বার্তা- গিভ ব্লাড, গিভ নাউ, গিভ অফেন।

রক্তদানের ভয় কাটাতে জেনে নিন কী ভাবে নিজেকে প্রস্তুত করবেন

রক্তদানের আগেঃ-

বেশি করে আয়রন সমৃদ্ধ খাবার খান। যেমন রেড মিট, মাছ, ডিম, বিনস, পালং শাক, সিরিয়াল, কিসমিস।রক্ত দেওয়ার আগের রাতে ভাল করে ঘুমান।রক্তদানের আগে অন্তত ৫০০ মিলিলিটার জল খান।রক্তদানের আগে স্বাস্থ্যকর খাবার খান। ফ্যাটি খাবার যেমন ভাজা বা তৈলাক্ত খাবার, আইসক্রিম এড়িয়ে চলুন।যদি আপনি শুধু অনুচক্রিকা দান করেন তা হলে মনে রাখবেন রক্তদানের অন্তত দু’দিন আগে থেকে আপনার শরীর সম্পূর্ণ অ্যাসপিরিন ফ্রি রাখতে হবে।অবশ্যই নিজের ডোনার কার্ড, আইডেন্টিটি কার্ড সঙ্গে রাখুন।

রক্তদানের সময়ঃ-

এমন পোশাক পরুন যাতে সহজে পোশাকের হাতা গুটিয়ে কনুইয়ের উপর তুলে নেওয়া যায়।যদি আপনার কোনও হাত থেকে রক্ত দিতে বেশি সুবিধাু হয়, তা হলে তা চিকিত্সককে জানান ও ধমনী খুঁজে পেতে সাহায্য করুন।রক্ত দেওয়ার সময় একদম সাভাবিক থাকুন। গান শুনে, কিছু পড়ে বা অন্য দাতাদের সঙ্গে কথা বলে সাভাবিক  রাখতে পারেন নিজেকে।হাতে কিছুটা সময় রাখুন। রক্ত দেওয়ার পরই  পানীয় খেয়ে রিল্যাক্স করুন।

রক্তদানের পর

আগামী ২৪ ঘণ্টায় ৪ গ্লাস জল খান।রক্তদানের পর লাগিয়ে দেওয়া স্ট্রিপ ব্যান্ডেজ অন্তত কয়েক ঘণ্টা রাখুন।ত্বকের র‌্যাশ এড়ানোর জন্য ব্যান্ডেজ খোলার পর ভাল করে সাবান জল দিয়ে পরিষ্কার করে নিন।ওই দিন ভারী কিছু তুলবেন না বা এক্সারসাইজ না করাই ভাল।যদি সূঁচ ফোটানো জায়গা থেকে রক্তপাত হতে থাকে তা হলে ক্ষতের উপর চাপ দিয়ে হাত সোজা করে ৫-১০ মিনিট উপরের দিকে তুলে রাখুন। যতক্ষণ না রক্তপাত বন্ধ হচ্ছে। 

রক্ত দেওয়ার পর মাথা ঘুরলে বা কোনও রকম শারীরিক অস্বস্তি হলে কিছু ক্ষণ বসে থাকুন বা শুয়ে থাকুন। যতক্ষণ না সুস্থ বোধ করছেন। 

 বিশ্ব রক্তদাতা দিবস উপলক্ষে বিশ্বের সকল রক্তদাতা ব্লাড ফর লাইফ ইন বাংলাদেশ (একটি রক্তদান ও সামাজিক সংগঠন) এর পক্ষে থেকে রক্তিম শুভেচ্ছা, অভিনন্দন, ভালোবাসা ও বিনম্রশ্রদ্ধা জ্ঞাপন করছি।

ধর্মবিষয়ক মন্ত্রনালয়ের প্রতিমন্ত্রীর মৃত্যুতে যশোর -২ আসনের এমপি নাসির এর শোক বার্তা

ধর্মবিষয়ক মন্ত্রনালয়ের প্রতিমন্ত্রীর মৃত্যুতে যশোর -২ আসনের এমপি নাসির এর  শোক বার্তা



প্রেস বিজ্ঞপ্তিঃ 
শোকাহতঃ
গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী এ্যাডভোকেট শেখ মো: আব্দুল্লাহ ইন্তেকাল করেছেন (ইন্নালিল্লাহি--রাজিউন)। তার মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করছি ও মরহুমের শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করছি।
মহান আল্লাহ রাব্বুল আলামিন মহরম কে বেহেশত নসিব করুন,
 আমিন

  

এমপি নাসিমের মৃত্যুতে বাংলাদেশ অনলাইন বঙ্গবন্ধু ঐক্য পরিষদের পক্ষ থেকে শোক বার্তা

এমপি নাসিমের মৃত্যুতে বাংলাদেশ অনলাইন বঙ্গবন্ধু ঐক্য পরিষদের পক্ষ থেকে শোক বার্তা




স্টাফ রিপোর্টার, মিজানুর রহমান ইমনঃ
আমরা শোকাহত

জাতীয় চার নেতার অন্যতম ক্যাপ্টেন এম মনসুর আলীর সুযোগ্য পুত্র, সাবেক সফল মন্ত্রী, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য, ১৪ দলের মুখপাত্র, জননেতা মোহাম্মদ নাসিম এমপি'র মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন বাংলাদেশ অনলাইন বঙ্গবন্ধু ঐক্য পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি মনিরুজ্জামান মিয়া ও কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক মাসুদুর রহমান বাংলাদেশ অনলাইন বঙ্গবন্ধু ঐক্য পরিষদ একটি অনলাইন ভিত্তিক সংগঠন থাকায় ফেসবুক মেসেঞ্জারে এক শোকবার্তায় কেন্দ্রীয় সভাপতি মনিরুজ্জামান মিয়া বলেন, পিতার মতোই মোহাম্মদ নাসিম এমপি আমৃত্যু জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আর্দশকে ধারণ করে দেশ ও জাতির কল্যাণে কাজ করে গেছেন। সকল ঘাত-প্রতিঘাত উপেক্ষা করে মুক্তিযুদ্ধের আদর্শ ও অসাম্প্রদায়িক চেতনা প্রতিষ্ঠায় তিনি অনন্য অবদান রেখেছেন। কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক মাসুদুর রহমান বলেন, মোহাম্মদ নাসিমের এমপি মৃত্যুতে বাংলাদেশ একজন দেশপ্রেমিক ও জনমানুষের নেতাকে হারাল। আমরা হারালাম সাহসী ও আদর্শবান একজন বিশ্বস্ত নেতা কে যা আমাদের দেশ ও দলের জন্য অনেক ক্ষতি। বাংলাদেশ অনলাইন বঙ্গবন্ধু ঐক্য পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি মনিরুজ্জামান মিয়া ও সাধারণ সম্পাদক মাসুদুর রহমান, তাঁর বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন ও শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।

করোনায় স্বাস্থ্য সচিবের স্ত্রীর মৃত্যু

করোনায় স্বাস্থ্য সচিবের স্ত্রীর মৃত্যু




নিউজ ডেস্কঃ
করোনাভাইরাসে (কোভিড-১৯) আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন স্বাস্থ্য সচিব আব্দুল মান্নানের সহধর্মিণী কামরুন্নাহার(ইন্না-লিল্লাহ-----রাজিউন)   

শনিবার (১৩ জুন) রাত ১২টার পর ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচে) চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

১৪ জুন বিশ্ব রক্তদাতা দিবস

১৪ জুন বিশ্ব রক্তদাতা দিবস






রিয়াজুল করিম রিজভীঃ

আজ বিশ্ব রক্তদাতা দিবস। রক্তদান নিঃসন্দেহে একটি মহৎ কাজ। রক্ত দিলে একজন মানুষের প্রাণ যেমন বাঁচে, তেমনি রক্তদাতাও সুস্থ থাকে।

অগণিত মুমূর্ষু রোগীকে স্বেচ্ছায় রক্তদান করে যারা জীবন বাঁচাতে সাহায্য করেন তাদের দানের মূল্যায়ন, স্বীকৃতি ও উদ্বুদ্ধকরণের জন্য বিশ্বজুড়ে এ দিবসটি পালন করা হয়। এ দিবসের মূল উদ্দেশ্য হলো জনগণকে রক্তদানে উৎসাহিত করা, স্বেচ্ছায় রক্তদানে সচেতন করা, নতুন নতুন রক্তদাতা তৈরি করা এবং নিরাপদ রক্ত ব্যবহারে উৎসাহিত করা। এ দিবস পালনের আরও উদ্দেশ্য দেশের জনগণকে প্রাণঘাতী রক্তবাহিত রোগ এইডস, হেপাটাইটিস-বি ও হেপাটাইটিস-সি সহ অন্যান্য রোগ থেকে নিরাপদ থাকার জন্য স্বেচ্ছায় রক্তদান ও রক্তের সঠিক ব্যবহার নিশ্চিত করা।

রক্তের বিভিন্ন গ্রুপের আবিষ্কারক অস্ট্রিয়ান বংশোদ্ভূত নোবেল বিজয়ী জীববিজ্ঞানী ও চিকিৎসক কার্ল ল্যান্ডস্টেইনার ১৮৬৮ সালের ১৪ জুন জন্মগ্রহণ করেন। জন্মদিনে তাকে স্মরণ ও শ্রদ্ধা জানাতে ১৪ জুন উদযাপন করা হয় ‘বিশ্ব রক্তদান দিবস’, যা ২০০৪ সাল থেকে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে পালিত হচ্ছে। স্বেচ্ছায় এবং বিনামূল্যে রক্তদান করে যারা লাখ লাখ লোকের প্রাণ বাঁচাতে সহায়তা করছেন তাদের লক্ষ্য করেই এই দিবসটি পালিত হয়।

১৪ জুন বিশ্ব রক্তদাতা দিবস। যারা স্বেচ্ছায় ও বিনামূল্যে রক্তদান করে লাখ লাখ মানুষের প্রাণ বাঁচাচ্ছেন তাদেরসহ সাধারণ জনগণকে রক্তদানে উৎসাহিত করাই এ দিবসের উদ্দেশ্য।

১৯৯৫ সাল থেকে আন্তর্জাতিক রক্তদান দিবস পালন এবং ২০০০ সালে ‘নিরাপদ রক্ত’-এই থিম নিয়ে পালিত বিশ্ব স্বাস্থ্য দিবসের অভিজ্ঞতা নিয়ে ২০০৪ সালে প্রথম পালিত হয়েছিল বিশ্ব রক্তদান দিবস। ২০০৫ সালে বিশ্ব স্বাস্থ্য অধিবেশনের পর থেকে প্রতিবছর বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাও এ দিবস পালনের জন্য তাগিদ দিয়ে আসছে।

প্রতিবছর ৮ কোটি ইউনিট রক্ত স্বেচ্ছায় দান হয়, অথচ এর মাত্র ৩৮ শতাংশ সংগ্রহ হয় উন্নয়নশীল দেশগুলো থেকে, যেখানে বাস করে বিশ্বের মোট জনসংখ্যার ৮২ শতাংশ মানুষ। এ ছাড়া এখনো বিশ্বের অনেক দেশে মানুষের রক্তের চাহিদা হলে নির্ভর করতে হয় নিজের পরিবারের সদস্য বা নিজের বন্ধুদের রক্তদানের ওপর, আর অনেক দেশে পেশাদারি রক্তদাতা অর্থের বিনিময়ে রক্ত দান করে আসছে রোগীদের। অথচ বিশ্বের নানা দেশ থেকে তথ্য-উপাত্ত সংগ্রহ করে জানা যায়, ‘নিরাপদ রক্ত সরবরাহের’ মূল ভিত্তি হলো স্বেচ্ছায় ও বিনামূল্যে দান করা রক্ত। কারণ তাদের রক্ত তুলনামূলকভাবে নিরাপদ এবং এসব রক্তের মধ্য দিয়ে গ্রহীতার মধ্যে জীবনসংশয়ী সংক্রমণ, যেমন এইচআইভি ও হেপাটাইটিস সংক্রমণের আশঙ্কা খুবই কম।

স্বেচ্ছায় ও বিনামূল্যে রক্তদানকারী আড়ালে থাকা সেসব মানুষের উদ্দেশে, এসব অজানা বীরের উদ্দেশে, উৎসর্গীকৃত ১৪ জুনের বিশ্ব রক্তদান দিবস। ১৪ জুন দিবসটি পালনের আরও একটি তাৎপর্য রয়েছে। এদিন জন্ম হয়েছিল বিজ্ঞানী কার্ল ল্যান্ডস্টিনারের। এই নোবেলজয়ী বিজ্ঞানী আবিষ্কার করেছিলেন রক্তের গ্রুপ ‘এ, বি, ও,এবি’।

মাধবপুরে কিস্তি আদায় না করার নির্দেশনা প্রদান

মাধবপুরে কিস্তি আদায় না করার নির্দেশনা প্রদান




লিটন পাঠান হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি

হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলা প্রশাসনের কিস্তি আদায় না করার নির্দেশনা প্রদান, করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব মোকাবিলা এবং নিম্নআয়ের মানুষের আয় ও কাজের পরিধি কমে যাওয়ায় মাধবপুর উপজেলার সব,

এনজিও/সমবায় সমিতির ঋণের,
কিস্তির টাকা আদায় সাময়িকভাবে স্থগিত রাখতে অনুরোধ করেছেন মাধবপুর উপজেলা প্রশাসন।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তাশনূভা নাশতারান জানান, আগামী জুন,

২০২০ পর্যন্ত টাকা আদায়ের নির্দেশনা না মেনে টাকা আদায় করলে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।জোর করে বা চাপ প্রয়োগ করে কোন এনজিও কিস্তি আদায় করতে চাইলে স্থানীয় জন প্রতিনিধির মাধ্যমে,

উপজেলা প্রশাসনকে অবহিত করার জন্য তিনি আহবান জানান।
শনিবার রাতে মাধবপুর উপজেলা প্রশাসনের আইডি থেকে এই নির্দেশনা প্রদান করা হয়। এতে উল্লেখ করা হয় ঋণগ্রহীতাগণ কোন এনজিও  জুন পর্যন্ত 

জোর পূর্বক টাকা আদায়/দাবী করলে মাধবপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কে  জানানোর জন্য অনুরোধ করা হয়।

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় ধর্ম প্রতিমন্ত্রীর ইন্তেকাল

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় ধর্ম প্রতিমন্ত্রীর  ইন্তেকাল





দাইয়ানুর রহমার মিষ্টারনুরঃ

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের  মাননীয় ধর্ম প্রতিমন্ত্রী শেখ আব্দুল্লাহ  ঢাকা সিএমএইচ-এ চিকিৎসাধীন অবস্থায় শনিবার রাত ১১.৪৫ মিনিটে 

ইন্তেকাল করেছেন। 
( ইন্নালিল্লাহি ওয়াইন্না ইলাইহি রাজিউন)।
ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মাননীয় প্রতিমন্ত্রী আমাদের মাঝে আর নেই।

প্রতিমন্ত্রীর একান্ত সচিব শেখ নাজমুল হক সৈকত এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

ধর্ম প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট শেখ মো. আব্দুল্লাহ ১৯৪৫ সালের ৮ সেপ্টেম্বর গোপালগঞ্জ জেলার মধুমতী নদীর তীরবর্তী কেকানিয়া গ্রামের এক সম্ভ্রান্ত ধার্মিক মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন

শেখ আব্দুল্লাহ ২০১৯ সালের ৭ জানুয়ারি ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব লাভ করেন।

আমরা মরহুমের আত্মার প্রতি মাগফেরাত কামনা এবং মরহুমের শোকার্ত পরিবারের সকল সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করছি।
আল্লাহ পাক তাঁকে জান্নাতুল ফেরদৌস দান করুন।
(আমীন)

সাবেক ব্যাংক কর্মকর্তা এবং সুনামধন্য সাংবাদিক মৃত মোঃ আঃ করিমের আত্মার মাগফিরাত কামনায় দোয়া অনুষ্ঠান অনুষ্টিত

সাবেক ব্যাংক কর্মকর্তা এবং সুনামধন্য সাংবাদিক মৃত মোঃ আঃ করিমের আত্মার মাগফিরাত কামনায় দোয়া অনুষ্ঠান অনুষ্টিত




মোরশেদ আলম 
যশোর ভ্রাম্যমাণ প্রতিনিধি 

যশোর কেশবপুর পৌরসভার ৩ নম্বর ওয়ার্ডের সাবদিয়া গ্রামের সাবেক ব্যাংক কর্মকর্তা ও ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ নেত্রী রাশিদা খাতুনের স্বামী,মোঃ আঃ করিম (৫৯) হৃদরোগ জনিত কারণে গত ২৯ মে মৃত্যু বরণ করেন ৷

ব্যাক্তিগত জীবনে মৃত মোঃ আব্দুল করিম ব্যাংক কর্মকর্তা ছিলেন, এবং তিনি সুনামের সাথে সাংবাদিকতা পেশার সাথে ও নিজেকে নিয়োজিত রেখেছিলেন। 
তার স্ত্রী রাশিদা খাতুন ও একজন ব্যাংক কর্মকর্তা ছিলেন ও বর্তমান তিনি আওয়ামী লীগ নেত্রী এবং সমাজসেবক হিসবে পরিচিত লাভ করেছেন। 

তারা দুজনেই সমাজের জন্য অনেক কিছু দিয়েছেন, কিন্তু ভাগ্যের নির্মম পরিহাসে এক জন কে চলে যেতে হয়েছে সবাই কে ছেড়ে। 

মৃত আঃ করিমের স্ত্রী তার স্বামীর জন্য সবার কাছে দোয়া প্রার্থনা করেন। 
 এবং মহরুমের আত্মার মাগফিরাত কামনায় গত ১২ জুন (শুক্রবার) কেশবপুর পৌরসভার ৩ নম্বর ওয়ার্ডের ৫টি মসজিদে দোয়া মাহফিলের অনুষ্ঠান করার ব্যাবস্থা  করেন।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া নবীনগরে ধর্ষণ মামলায় একজন আটক

ব্রাহ্মণবাড়িয়া  নবীনগরে ধর্ষণ মামলায় একজন আটক




ডিএমসি রকিব নবীনগর (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধি

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগরে এক স্কুলছাত্রীকে অপহরণ করে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষণের ঘটনার তিন দিন পর ওই ছাত্রীকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ সময় ওই অপহরণকারী যুবক রিয়াদুল ইসলাম শান্ত(২০)কে আটক করা হয়।
শনিবার ওই স্কুল ছাত্রীর মা শিল্পী আক্তার বাদী হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে নবীনগর থানায় মামলা করেন। ওই মামলায় তাকে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। ধর্ষিতা ছাত্রীকে মেডিকেল পরীক্ষার জন্য জেলা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। গ্রেপ্তারকৃত যুবক উপজেলার রসুল্লাবাদ পশ্চিম পাড়া গ্রামের হাজী আবদুর রউফ মিয়ার ছেলে।
সূত্র জানায়, উপজেলার বাড়িখলা গ্রামের ওই শিক্ষার্থী লাউর ফতেহপুর আর.এন.টি উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ওই ছাত্রী গত ৮জুন সকালে বাড়ি থেকে বের হয়ে যাওয়ার পর আর বাড়ি ফিরেনি। পাড়া প্রতিবেশী ও আত্মীয় স্বজনদের বাড়িতে খুঁজা খুঁজি করে নাবালিকা ওই ছাত্রীকে না পেয়ে তার পরিবারের পক্ষ থেকে ১০জুন নবীনগর থানায় একটি নিখোঁজ সাধারণ ডায়েরী করেন।
মামলা ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, ওই ছাত্রীকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে বখাটে রিয়াদুল ইসলাম শান্ত তার নিজ বাড়িতে নিয়ে যায় এবং জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। সংবাদ পেয়ে পুলিশ ওই গ্রামে অভিযান চালালে রিয়াদুল ইসলাম শান্ত ওই ছাত্রীকে নিয়ে অন্যত্র পালিয়ে যায়। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শুক্রবার (১২/০৬) বিকেলে নবীনগর পৌর এলাকার শেখ রাসেল স্টেডিয়ামের সামনে থেকে ওই স্কুল ছাত্রীসহ অপহরণকারীকে আটক করে পুলিশ। গতকাল শনিবার (১৩/০৬) ওই স্কুল ছাত্রীর মা শিল্পী আক্তার বাদী হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে নবীনগর থানায় মামলা করেন।
ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে নবীনগর থানার ওসি (তদন্ত) রুহুল আমিন বলেন, এই ঘটনায় ওই স্কুল ছাত্রীর মায়ের লিখিত অভিযোগের ভিত্তিতে নবীনগর থানায়, নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে, একটি অপহরণ ও ধর্ষণ মামলা দায়ের হয়েছে। আটক রিয়াদুল ইসলাম শান্তকে আদালতে ও ভিকটিমকে মেডিকেল পরীক্ষার জন্য জেলা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। মামলাটি তদন্তপূর্বক পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

ঝিনাইদহ কোটচাঁদপুরে মহিলা মেম্বার কে ধর্ষণের অভিযোগে সামাউল মেম্বার গ্রেফতার

ঝিনাইদহ কোটচাঁদপুরে মহিলা মেম্বার কে ধর্ষণের অভিযোগে সামাউল মেম্বার গ্রেফতার



খোন্দকার আব্দুল্লাহ বাশার, ঝিনাইদহ জেলা প্রতিনিধি 

ঝিনাইদহের কোটচাঁদপুরে এক মহিলা ইউপি সদস্যকে ধর্ষণের অভিযোগে মোঃ সামাউল হক (৫০) নামে এক ইউপি সদস্যকে আটক করেছে থানা পুলিশ। ধর্ষণের অভিযোগ এনে বৃহস্পতিবার দুপুরে বলুহর ইউনিয়ন পরিষদের মহিলা ইউপি সদস্য মোছাঃ মর্জিনা খাতুন বাদী হয়ে কোটচাঁদপুর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেন। ওই দিন রাতেই আসামী সামাউল হককে আটক করা হয়। আটককৃত সামাউল হক উপজেলার বকশিপুর গ্রামের মোঃ ছানার উদ্দীনের ছেলে।

মামলার এজাহার সূত্রে জানাযায়, উপজেলার ফুলবাড়ী গ্রামের মৃত ফকির চাঁদ গাজীর মেয়ে ৪নং বলুহর ইউনিয়নের ৪নং সংরক্ষিত মহিলা আসনের ইউপি সদস্য মোছাঃ মর্জিনা খাতুন (৪৫) এর সাথে পার্শ্ববর্তী কুশনা ইউনিয়নের ইউপি সদস্য মোঃ সামাউল হকের সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে।

সম্পর্কের এক পর্যায়ে গত ১৪-০২-২০১৮ তারিখ বিকালে স্থানীয় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের একটি কক্ষে মৌলভী কাজী মোঃ ছব্দুল সাক্ষী মোঃ ইয়ারুল ইসলাম ও মোঃ জামাল উদ্দীনের উপস্থিতিতে মৌখিকভাবে ৪ লক্ষ টাকা কাবিনে বিবাহ সম্পন্ন করেন।

বিবাহের পর থেকে ইউপি সদস্য মোছাঃ মর্জিনা খাতুন স্ত্রী হিসাবে ইউপি সদস্য সামাউল হককে বলেন। কিন্তু সামাউল বিভিন্ন বাহানা করে এড়িয়ে যায়। পরবর্তিতে সামাউল হক মর্জিনাকে কোটচাঁদপুর সনি আবাসিক হোটেল ও চুয়াডাঙ্গা জেলার জীবননগর উপজেলার হরিন নগর গ্রামের এক পরিচিত’র বাড়িতে নিয়ে দৈহিক মেলামেশা করতে থাকে।

বাদী মর্জিনা খাতুন এজাহারে উল্লেখ করেন, আমি একজন ইউপি সদস্য হওয়ায় আসামী সামাউল হক বিভিন্ন প্রকার প্রলোভন দেখিয়ে দুই থেকে আড়াই লক্ষ টাকা নেয়। এবং আমার সরলতার সুযোগে মিথ্যা বিবাহের প্রলোভন দেখিয়ে আমার সাথে দৈহিক মেলামেশা করতে থাকে। গত ১৪ মে সকালে কুশনা ইউনিয়ন পরিষদে গিয়ে সামাউলকে স্ত্রী হিসাবে গ্রহন করতে বলি। কিন্তু সে আমাকে স্ত্রী হিসাবে গ্রহন করবে না বলে জানায়। বিষয়টি নিয়ে উভয় ইউপি চেয়ারম্যান ও ইউপি সদস্যদের সাথে নিয়ে মিমাংস করার চেষ্টা করেও কোন ফল হয়নি।

এব্যাপারে বলুহর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আব্দুল মতিন জানান, দীর্ঘদিন যাবত তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক ছিল। কিন্তু বিবাহের কোন কাগজ পত্র দেখাতে না পারলেও আটকের পর থানায় তাদের বিবাহের কথা স্বীকার করেছেন।

কোটচাঁদপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মাহবুবুল আলম ঘটনার সতত্য নিশ্চিত করে জানান, বৃহস্পতিবার (১১জুন) ইউপি সদস্য মর্জিনা খাতুন থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ২০০০ (সংসোধনী/০৩ এর ৯(১) ধারায় মামলা দায়ের করেন। মামলা নং-২ । পরে তাকে আটকের পর জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়