দৌলতপুরের ইউএনও শারমিন আক্তার'র করোনা পজেটিভ

দৌলতপুরের ইউএনও শারমিন আক্তার'র করোনা পজেটিভ





কুষ্টয়া প্রতিনিধি : কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শারমিন আক্তার করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। রোববার রাতে কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজের পিসিআর ল্যাব থেকে পাওয়া রিপোর্টে এ তথ্য জানা যায়।

স্থানীয় ভাবে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) আজগর আলী এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

ইউএনও শারমিন আক্তার সহ গত ২৪ ঘন্টায় কুষ্টিয়ায় নতুন করে ৩৬ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে জেলায় আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ালো ৯৭৬ জন।

কুষ্টিয়ার সিভিল সার্জন ডা. এইচ এম আনোয়ারুল ইসলাম জানান, আজ জেলার ২০৩ টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এর মধ্যে ৩৬ টি নমুনা পজেটিভ আসে।

আক্রান্তদের মধ্যে কুষ্টিয়া সদর উপজেলায় ২১ জন, দৌলতপুর উপজেলায় ৫ জন, কুমারখালী উপজেলায় ৪ জন, খোকসা উপজেলায় ৩ জন ও মিরপুর উপজেলায় ২ জন আক্রান্ত হয়েছেন। এনিয়ে জেলায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ালো ৯৭৬ জন। নতুন করে আক্রান্তদের মধ্যে দৌলতপুরের ইউএনও শারমিন আক্তার রয়েছেন। উপসর্গ দেখা দিলে শনিবার তিনি পরীক্ষার জন্য কুষ্টিয়া পিসিআর ল্যাবে নমুনা পাঠান। রোববার রাতে তিনি জানতে পারেন তার রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে।

শারমিন আক্তার বাসায় চিকিৎসা নিচ্ছেন। বর্তমানে তিনি অনেকটা সুস্থ আছেন, সামান্য গা গরম এর সাথে সর্দি ভাব আছে বলে সংশ্লিষ্ট সুত্রে জানা গেছে।

ব্যবসা-বানিজ্যে উন্নয়নের জন্য নৌকায় ভোট দিন..শাহীন চাকলাদার

ব্যবসা-বানিজ্যে উন্নয়নের জন্য নৌকায় ভোট দিন..শাহীন চাকলাদার




মোরশেদ আলম ভ্রাম্যমান যশোর প্রতিনিধিঃ  
যশোর-৬ কেশবপুর সংসদীয় আসনে উপ-নির্বাচনে নৌকার প্রার্থী ও যশোর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহীন চাকলাদার বলেছেন, কেশবপুরের ব্যাবসায়ীরা মাথা উঁচু করে তাদের ব্যাবসা পরিচালনা করবে। কেউ তাদের কোন সমস্যা সৃষ্টি করবে না। ব্যাবসা সেক্টরকে পরিকল্পিতভাবে গড়ে তুলতে হবে। ব্যাবসা সেক্টরে ব্যাপক উন্নয়নের জন্য আগামী ১৪ জুলাই উপ-নির্বাচনে ভোটে নৌকায় ভোট দিন।
তিনি আরো বলেন, শান্তিপ্রিয় কেশবপুর বাসী স্বস্তি আর শান্তিতে বসবাস করবে। কেশবপুরে কোন সন্ত্রাসী থাকবে না, চাঁদাবাজ থাকবে না, মাদকসেবী থাকবে না। আমি কেশবপুর উপজেলাকে ঢেলে সাজাতে চাই। গ্রাম পর্যায়ের উন্নয়ন নিশ্চিত করতে চাই। 
গতকাল বিকাল কেশবপুরে ব্যাবসায়ীদের সমবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন। 
বণিক সমিতির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আব্দুল ওয়াদুদের সভাপতিত্বে ও শেখ শাহিনের সঞ্চালনায় কেশবপুর প্রাথমিক শিক্ষক মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন উপজেলা চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব কাজী রফিকুল ইসলাম, উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান এইচ এম আমির হোসেন ও পৌরসভার মেয়র রফিকুল ইসলাম। আরো বক্তব্য রাখেন  বণিক সোসাইটির সাধারণ সম্পাদক কামরুল বিশ্বাস, বি সি ডি এস কেশবপুর এর  সাধারণ সম্পাদক শংকর পাল ও ব্যাবসায়ী কাত্তিক রায়।

মাস্ক না পরায় ৪৫ জনকে জরিমানা

মাস্ক না পরায় ৪৫ জনকে জরিমানা



শামিম উদ্দিন চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি :
চাঁপাইনবাবগঞ্জে করোনা ভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে কঠোর অবস্থানে জেলা প্রশাসন। হঠাৎ করে করোনার সংক্রমণ বৃদ্ধি পাওয়ায় নতুন করে জেলা প্রশাসন
ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান জোরদার, জনসচেতনতায় মাইকিং, মাস্ক বিতরণসহ
বিভিন্ন কর্মসূচীর বাস্তবায়ন শুরু করেছে। দিনভর আষাড়ারে বৃষ্টি উপেক্ষা
করে জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটরা আইন প্রয়োগের পাশাপাশি জনসচেতনতায় কাজ করে যাচ্ছেন। এসময় মাইকিং করে রাস্তায় বিনা কারণে
ঘোরাঘুরি না করার এবং সর্বদা মাস্ক পরিধান করারও পরামর্শ দেওয়া হয়।
রোববার সরকারি নির্দেশনা অমান্য করে মাস্ক না পরায় ৪৫ জনকে ৭৭৭০টাকা জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। শহরের বিভিন্ন পয়েন্টে অভিযান চালিয়ে করোনা সংক্রমণ রোধে সচেতনাতার পাশাপাশি এ জরিমানা আদায় করা হয়। এর অগেরদিন
স্বাস্থ্যবিধি অমান্য করায় ২৬ জনকে জরিমানা করা হয়।

ভ্রাম্যমাণ আদালত সূত্রে জানা গেছে, রোববার জেলা শহরের বিভিন্ন পয়েন্টে
ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হয়েছে। জেলা প্রশাসনের নির্বাহী
ম্যাজিস্ট্রেট সাইফুল ইসলাম, রুহুল আমিন ও মংচিংনু মারমা ভ্রাম্যমান
আদালত পরিচালনা করেন। অভিযানে সরকারি নির্দেশনা অমান্য করার অপরাধে ৪৫
জনকে জরিমানা করা হয়। এদের কাছ থেকে বিভিন্ন পরিমানে জরিমানা আদায় করা
হয়েছে।
জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সাইফুল ইসলাম বলেন, করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে কঠোর অবস্থানে রয়েছে প্রশাসন। স্বাস্থ্যবিধি মানতে পরামর্শ দেয়ার পাশাপাশি প্রয়োজনে আইন প্রয়োগ করা হচ্ছে। অযথা সাধারণ মানুষ যাতে ঘোরাফিরা না করে সেজন্য বারবার আমরা মাইকিং করে বলে যাচ্ছি।
কারণ, এখন খুবই বিপজ্জনক সময়। এই সময়টাতে মানুষকে ঘরে থাকতেই হবে। এ মহামারি থেকে রক্ষা পেতে সামাজিক দুরত্ব মেনে চলাফেরা, স্বাস্থ্যবিধি
মানা ও সচেতনতার কোন বিকল্প নেই।

নওগাঁর রাণীনগরে ছুরিকাঘাতে স্ত্রীকে খুন,ঘাতক স্বামী আটক

নওগাঁর রাণীনগরে ছুরিকাঘাতে স্ত্রীকে খুন,ঘাতক স্বামী আটক





মোঃ ফিরোজ হোসাইন রাজশাহী ব্যুরোঃ

নওগাঁর রাণীনগরে পারিবারিক কলহের জ্বের ধরে স্ত্রী সামছুননাহার (৪৫) কে ছুরিকাঘাতে হত্যা করা হয়েছে। এঘটনায় স্থানীয়রা ঘাতক স্বামী সিরাজুল ইসলাম (৫৫)কে আটক করে পুলিশে সোর্পদ করেছে। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার মিরাট ইউনিয়নের আতাইকুলা সরদার পাড়া গ্রামে।

স্থানীয় সুত্রে জানাগেছে, বিয়ের পর থেকে পরিবারে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে দ্বন্দ্ব চলছিল। এরই ধারাবাহিকতায় রবিবার আসর নামাজের সময় স্ত্রী সামছুননাহার নামাজ পরার সময় স্বামী সিরাজুল ইসলাম ছুরিকাঘাত করে।

এসময় গুরুত্বর আহত অবস্থায় ফেলে দৌড়ে পালিয়ে যাবার সময় স্থানীয়রা ঘাতক স্বামীকে আটক করে।স্থানীয় লোকজন আহত সামছুননাহারকে উদ্ধর করে হাসপাতালে নেয়ার সময় পথি মধ্যে মারা যায়।তবে কি ধরনের পারিবারিক কলহ ছিল তা তৎক্ষনাত জানা জায়নি।

এব্যপারে রাণীনগর থানার ওসি মো: জহুরুল হক স্থানীয়দের বরাদ দিয়ে বলেন,নামাজরত অবস্থায় ছুরিকাঘাতের  কথা শুনছি।মূলত কিভাবে ঘটনা ঘটল তা ক্ষতিয়ে দেখা হচ্ছে। এঘটনায় ঘাতক স্বামী সিরাজুল ইসলামকে আটক করা হয়েছে। লাশ উদ্ধার করে মর্গে প্রেরণ ও মামলার প্রস্তুতি চলছে। সন্ধ্যা সোয়া সাতটায় এরির্পোট লেখা পর্যন্ত পুুলিশ ঘটনাস্থলেই ছিলো।

রক্ষণাবেক্ষণ ও সংস্কারে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের উদাসীনতা

রক্ষণাবেক্ষণ ও সংস্কারে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের উদাসীনতা





 শামিম উদ্দিন চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি :
চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার মহানন্দা নদীর ওপর নির্মিত বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সেতুর এখন বেহাল দশা। আর এ নিয়ে জেলাবাসী জোর দাবী জানিয়েছেন দ্রুত সংস্কারের। তবে কর্তৃপক্ষ বলছেন ধীরে ধীরে সংস্কারের কাজ করা হবে।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলার মহানন্দা নদীর ওপর নির্মিত বাংলাদেশ-চীন মৈত্রী সেতু বা বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সেতু চালু হয় ১৯৯৩ সালের ২৩ জুন। এরপর থেকে বিভিন্ন সময় সেতুর নষ্ট হয়ে যাওয়া অংশ সমূহ সাময়িক মেরামত করা হলেও অতিরিক্ত লোডের পণ্য বোঝাই ট্রাক চলাচলের কারণে অতি অল্প সময়েই আবার তা ক্ষতির সম্মুক্ষিণ হয়। এমনকি সেতুর নিচেই তৈরি হয়েছে পৌরসভার ময়লা-আর্বজনা ফেলার ভাগাড়। যা থেকে দূর্গন্ধ ছড়াচ্ছে হরহামেশাই। আর দূর্গন্ধে নাক-মুখ ঢেঁকে অসহ্য যন্ত্রণা নিয়ে এর ওপর দিয়ে চলাচলকারী যাত্রী সাধারনকে পার হতে হয় মহানন্দা সেতু। আর তাই এই সেতু ব্যবহারকারীরা সেতু সংস্কার ও নদী তীরবর্তী এলাকায় ময়লা আবর্জনা না ফেলার দাবী জানাচ্ছেন।

সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, সেতুটির উত্তরে বারোঘরিয়া প্রান্তে রেলিংয়ে নতুন রং করা হয়েছে ঠিকই কিন্তু মরিচা লেগে লোহার পাত ছিদ্র ছিদ্র হয়ে খসে পড়ছে। এছাড়া সেতুর ফুটপাতের যে ঢাকনা রয়েছে তা ভেঙ্গে গর্তের তৈরি হয়েছে। এদিকে সেতু রক্ষায় উভয় পাড়ে ব্লক দিয়ে যে বাঁধ দেয়া রয়েছে তা বিশাল অংশ নিয়ে দেবে গেছে অনেক আগেই। বিভিন্ন সময়ে বারবার সংস্কার কাজের দাবি উঠলেও তাতে বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সেতুর এই দুরাবস্থার কোনই পরিবর্তন হয়নি। আর তাই যে কোন সময় ফুটপাতে পড়ে গিয়ে বা রেলিং ভেঙ্গে ঘটতে পারে বড় ধরনের দুর্ঘটনা। অথচ কোটি কোটি টাকা আয় হচ্ছে সেতুর টোল থেকে। এমনকি ভারতের সাথে স্থলপথে প্রতিদিন শত শত পণ্যবাহী ট্রাক বিভিন্ন মালামাল আমদানি-রপ্তানী করতে ব্যবহার করে এই সেতুই।

এ বিষয়ে স্থানীয় তরুন আশিক আহমেদ ক্ষোভের সুরে বলেন, প্রতিদিন বিকেলে বন্ধুদের নিয়ে আড্ডা দিতে ও নদীর মুক্ত নির্মল বাতাস পেতে ব্রীজে ঘুরতে গেলেও গত প্রায় ২ মাস ধরে আমরা এ থেকে বঞ্চিত। কারণ ভয় ওই একটাই ভাঙ্গা রেলিং ধরতে গিয়ে যদি কোন দূর্ঘটনার স্বীকার হই। এছাড়া ময়লা আবর্জণার দূর্গন্ধে এখানে দাঁড়ানো তো দূরের কথা চলাচল করাই দায়।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র-টিটিসি'র একজন শিক্ষক আক্ষেপ করে বললেন, নদীর এপারে শহর এলাকায় বাস করলেও কর্মক্ষেত্রের কারণে প্রায় প্রতিদিনই হেঁটে ব্রীজ পার হয়ে নদীর অন্য প্রান্তে যেতে হয়। কিন্তু সম্প্রতি সেতুর ফুটপাতের একটি জায়গায় গর্ত তৈরি হওয়ায় বাধ্য হয়েই এত ব্যস্ত সেতুতে প্রচুর গাড়ির ভীড়ে ফুটপাত ছেড়ে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে রাস্তা দিয়ে চলাচল করছি। আমার মতো এমন হাজারো মানুষের এটি নিত্যদিনের দূর্ভোগ। আর তাই জরুরীভাবে এর সংস্কার কাজ প্রয়োজন বলেও জানান তিনি।

এদিকে নাম প্রকাশ না করার শর্তে স্থানীয় এক রাজনৈতিক নেতা বলেন, জেলাবাসীর প্রাণের দাবী বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সেতুর এই অবস্থার জন্য কর্তৃপক্ষের অবহেলা ও জনপ্রতিনিধিদের গুরুত্ব না দেয়ায় দায়ী। দীর্ঘদিন ধরে সেতুর টোল ফ্রি এবং সংস্কারের দাবিতে ছাত্রলীগসহ বিভিন্ন সংগঠন স্মারকলিপি প্রদান ও আন্দোলন করলেও এর ফলাফল শূণ্য। এমনকি মাঝে মধ্যেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকেও এই সেতুর দূরাবস্থার কথা উল্লেখ করে ছবি পোস্ট ও বিভিন্ন মন্তব্য করেন অনেকেই। কিন্তু সেতুর পাশেই সড়ক ও জনপদ বিভাগের অফিস হলেও এরা শুধু ছোটখাটো রাস্তার সংস্কার করেই দায়িত্ব শেষ করেন।

তবে এ বিষয়ে চাঁপাইনবাবগঞ্জ সড়ক ও জনপদ বিভাগ-সওজ এর নির্বাহী প্রকৌশলী এজেডএম ফারহান দাউদ জানান, ৫০ বছরের (স্বাভাবিক) আয়ু ধরা সেতুটি এখন ২৭ বছর পার করছে। এ সেতুতে ডাবল এক্সেল যানের অনুমোদিত লোড ১৫-২২ টন। কিন্তু প্রতিদিনই ৪৪-৫০ টন ওজন নিয়ে বিপুল সংখ্যক পণ্যবাহী যান সেতু অতিক্রম করছে। বিশেষ করে বিশাল বিশাল পাথরবাহী ট্রাক চলাচলের কারণেই সেতুটির অবস্থা এখন নড়বড়ে। সেতুর রেলিংয়ের কিছু অংশে মরিচা ধরলেও একসাথে সবগুলো পরিবর্তন করা যাবে না। তবে মরিচা পড়ে খসে যাওয়া অংশ খুব শীঘ্রই মেরামত করা হবে। তাছাড়া কয়েক দিনের টানা বৃষ্টিতে কিছু জায়গা দেবে গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। সেগুলো সংস্কারের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

মধ্যম হালিশহর পুলিশ ফাঁড়ির নামে করা হচ্ছে অপপ্রচার

মধ্যম হালিশহর পুলিশ ফাঁড়ির নামে করা হচ্ছে অপপ্রচার





মোঃ হাসান রিফাত, চট্টগ্রাম প্রতিনিধি

 বিশ্বে এক মহামারি আকার ধারণ করেছে এ করোনা ভাইরাস।বিশ্ব আজ থমকে গিছে  করোনার কাছে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ গোটা বিশ্বে বেড়েই চলেছে। যার থাবা এসে পড়েছে বাংলাদেশেও।বাংলাদেশেও সংক্রমণ বাড়ছে। 

করোনায় মানুষ মানুষকে চিনতে সাহায্য করেছে। করোনা মানুষ একা বাচঁতে শিখিয়েছে।এই পরিস্থিতে প্রশাসন সব চেয়ে বেশি সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছে সাধারণ মানুষ কাছে।তেমনি সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছে মধ্যম হালিশহর পুলিশ ফাঁড়ি। করোনা পরিস্থিতে সিএমপি কতৃক আসহায় দরিদ্র মানুষের রান্না করা খাবার, ত্রাণ সামগ্রী ডোর টু ডোর পৌছেঁ দিয়েছেন।সরকারের কথা মতো বিকাল চার ঘটিকার মধ্যে সকল ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করা সকল আদেশ পালন করার জন্য তৎপর ছিলেন সাব ইনস্পেক্টর নাছির উদ্দিন।

এই পরিস্থিতে কিছু সংখ্যক মানুষ সুযোগ নিয়েছে তারা বিভিন্ন সময় থানার নামে বিভিন্ন স্থান থেকে টাকা নেওয়া এবং থানার নামে অপপ্রচার শুরু করেছেন।

গত বছর সাব ইনস্পেক্টর নাছির উদ্দিন মধ্যম হালিশহর পুলিশ ফাঁড়িতে ইনর্চাজ হিসেবে যোগদান করেন তিনি তার সাথে কথা হলে তিনি জানান, তিনি যে স্থানে দায়িত্বরত রয়েছেন সেখানে মানুষের সংখ্যা বেশি যেখানে মানুষের সংখ্যা বেশি সেখানে সাধারণত অপরাধ বেশি হয় তাই আমাদের সব সময় প্রস্তুত থাকতে হয়।তিনি বলেন আমি এই ফাঁড়ি তে যোগদানের পরে এই এলাকার জুয়া,মাদক,পতিতালয় থেকে এই এলাকাকে মুক্ত করার জন্য পর্যাপ্ত কাজ করে যাচ্ছি এবং প্রায় বেশির ভাগ কাজে সফলতা পেয়েছি, বর্তমানে,আমি আমার এলাকাটি মাদক,জুয়া,পতিতালয়,সন্ত্রাস থেকে রক্ষা করতে পেরেছি আপনি দেখতে পাবেন বর্তমানে আমার এলাকায় প্রকাশ্যে কোনো প্রকার জুয়া খেলা হয় না যদি কোথাও হয়ে থাকে তাহলে সাধারণ জনগণ বা অন্য কেউ আমাদের জানালে আমরা সাথে সাথে ব্যবস্থা নিব।
এ বিষয়ে এলাকার কিছু মানুষের সাথে কথা বললে তাদের মধ্যে হাসান নামের এক ব্যাক্তি আমাদের জানান, আগে আমাদের এলাকায় প্রকাশে জুয়া খেলতো বর্তমানে আমরা তা দেখছি না এবং আগে যেখানে সেখানে মাদক বিক্রয় হতো কিন্তু এখন আমরা তাদের দেখি না যারা মাদক বিক্রয় করতেন।তিনি আরো বলেন,বর্তমান ইনর্চাজ খুবই ভালো তাকে যখন যেকোন কাজে ফোন করলে তিনি সাথে সাথে ব্যবস্থা নেন।

আশাশুনি নমুনা সংগ্রহ বুথ থেকে ৪ জনের নমুনা সংগ্রহ

আশাশুনি নমুনা সংগ্রহ বুথ থেকে ৪ জনের নমুনা সংগ্রহ




আহসান উল্লাহ বাবুল, আশাশুনি (সাতক্ষীরা) প্রতিনিধিঃ
আশাশুনি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের নমুনা সংগ্রহ বুথ থেকে ৪ জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। রবিবার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের নির্দিষ্ট বুথে এসে চার ব্যক্তি তাদের নমুনা সংগ্রহ করার কথা বললে স্যানিটারী ইন্সপেক্টর জিএম গোলাম মোস্তফা, স্বাস্থ্য সহকারী মোক্তারুজ্জামান স্বপন এবং অফিস সহায়ক জাকির হোসেন নমুনা সংগ্রহের কাজে নিয়োজিত থেকে তাদের নমুনা সংগ্রহ করেন। উল্লেখ্য, আশাশুনি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রতি সপ্তাহে রবি, সোম ও বুধবার বেলা ১১টা থেকে দুপুর ১ টা পর্যন্ত নমুনা সংগ্রহের জন্য বুথ স্থাপন করা হয়েছে।

রোববার সিভিল সার্জন সহ যশোরে ১৫ জন আক্রান্ত, সদরের আটজন

রোববার সিভিল সার্জন সহ যশোরে ১৫ জন আক্রান্ত, সদরের আটজন






সুমন  হোসেন যশোর প্রতিনিধিঃ
যশোরের সিভিল সার্জন শেখ আবু শাহীন সহ যশোর রোববার ১৬ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। তারমধ্যে যশোর সদরের ৯ জন। এছাড়া ৫জন অভয়নগর উপজেলার ও দুইজন মণিরামপুরের। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন যশোরের সিভিল সার্জন অফিসের মুখপাত্র রেহনেওয়াজ রনি। তিনি আরো জানান, এনিয়ে যশোর মোট আক্রান্ত হয়েছেন ৯শ’৮৪ জন। নতুন একজন সহ মৃতের সংখ্যা ১৫ ও সুস্থ্য হয়েছেন ৪শ’৮৬ জন। এ দিকে যশোরের সিভিল অফিসে যশোর সদরের দায়িত্বে থাকা কর্মকর্তা ডাক্তার নাসিম ফেরদৌস জানান, যশোর সদরের নয়জনের মধ্যে একজন সাতক্ষীরা জেলায় ঝাউডাঙ্গা গ্রামের বাসিন্দা। ফলে তাকে সাতক্ষীরায়  অন্তর্ভূক্ত করা হয়েছে।  যশোরের সিভিল সার্জন শেখ আবু শাহীন ছাড়া অন্যরা হলেন, যশোর সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কামরুজ্জামনের স্ত্রী, শালিকা ও গৃহপরিচালিকা রয়েছেন। তবে নির্বাহী কর্মকর্তা কামরুজ্জামানের ফলাফল নেগেটিভ এসেছে। এছাড়া রামগর ইউনিয়নের ৬৩ বছরের একজন অবসরপ্রাপ্ত  সরকারী কর্মকর্তা, ঝুঝুমপুর আনছার ক্যাম্প এলাকার মহিলা(৪০), তিনি গৃহিনী। হামিদপুর ময়লা খানার পাশে১৮ বছরের এক যুবক। তিনি সোনার দোকানে চাকরি করেন। পালবাড়ি এলাকার ৪০ বছরের একজন গৃহিনী। আক্রান্ত ১৬ জনের মধ্যে একজনকে সাতক্ষীরা জেলায় অন্তর্ভূক্ত করায় এ দিন মোট আক্রান্ত ১৫ জন। এদিকে, স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, যশোরের ডেপুটি সিভিল সার্জনও ক্যানসারে আক্রান্ত। ফলে স্বাস্থ্য প্রশাসন সামলানোর জন্য বড় ধরনের শূন্যতা তৈরি হয়েছে। এই অবস্থায় সদর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কর্মকর্তা ডা. মীর আবু মাউদকে ভারপ্রাপ্ত সিভিল সার্জন হিসেবে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।

হোটেলে মাদক ব্যবসা, ২ বছর কারাদন্ড

হোটেলে মাদক ব্যবসা, ২ বছর কারাদন্ড






মো: লাতিফুল আজম
কিশোরগঞ্জ নীলফামারী প্রতিনিধি 


অভিনব কৌশলে হোটেল ব্যবসায়ের আড়ালে মাদক ব্যবসায়ের দায়ে হাতে নাতে আটক এক মাদক ব্যবসাীয়কে ২ বছরের কারাদন্ড দিয়েছে ভ্রাম্যমান আদালত । আজ রবিবার নীলফামারীর কিশোরগঞ্জ উপজেলার বড়ভিটা বাজারে নিজ হোটেল থেকে এ মাদক ব্যবসায়ীকে ১০ টি ছোট ছোট গাজার টোপলাসহ পুলিশ আটক করে।

গোপন খবর সূত্রে কিশোরগঞ্জ থানার এস আই রেজাউল করিমের নেতৃত্বে একদল পুলিশ উপজেলার বড়ভিটা কৃষি ব্যাংক সংলগ্ন নুরুজ্জামানের হোটেলে অভিযান চালায়। এসময় মাদক ব্যবসায়ী নুরুজ্জামানের (৩০) কাছ থেকে ১০ টোপলা গাজা উদ্ধার করে পুলিশ। হোটেল ব্যবসায়ের আড়ালে মাদক ব্যবসায়ের দায়ে তাকে আটক করা হয়। আটককৃত মাদক ব্যবসায়ী বড়ভিটা বাজারস্থ মৃত পাগলু মামুদের পুত্র। নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার আবুল কালাম আজাদ ঘটনাস্থলেই ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে ওই মাদক ব্যবসায়ীকে ২ বছরের কারাদন্ড প্রদান করেন।

এব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আবুল কালাম আজাদের সাথে কথা হলে তিনি জানান- হোটেল ব্যবসায়ের আড়ালে মাদক বিক্রীর অভিনব কৌশল অবলম্বন করে ওই মাদক ব্যবসায়ী। তাকে মাদক বিক্রীর দায়ে ২ বছর কারাদন্ড প্রদান করা হয়।

কেশবপুর উপ নির্বাচনে নৌকা প্রতীককে জয়ী করতে ত্রিমোহনী ইউনিয়নে প্রচার ও মোটর সাইকেল র্যালী

কেশবপুর উপ নির্বাচনে নৌকা প্রতীককে জয়ী করতে ত্রিমোহনী ইউনিয়নে প্রচার ও মোটর সাইকেল র্যালী





মোঃ ইকরামুল করিম সৈকত, ঝিকরগাছা (যশোর) প্রতিনিধিঃ

আগামী ১৪ জুলাই ২০২০ তারিখে যশোর-৬ (কেশবপুর) আসনে জাতীয় সংসদ উপ-নির্বাচন  অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। সংসদ উপ-নির্বাচনকে সামনে রেখে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকার প্রার্থী জনাব শাহীন চাকলাদার এর নৌকা প্রতীকের বিজয় সুনিশ্চিত করতে কেশবপুর উপজেলার অন্তর্গত ত্রিমহিনী ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামে প্রচার প্রচারণা চালানো ও মোটরসাইকেল র‍্যালি করা হয়। র‍্যালি শেষে ত্রিমহিনী ইউনিয়নের প্রধান নির্বাচনী কার্যালয়ে আলোচনা সভায় উপস্থিত ছিলেন যশোর জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জনাব আফজাল হোসেন, ঝিকরগাছা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ন-সাধারণ সম্পাদক জনাব মোঃ মনিরুল ইসলাম।

এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন যশোর জেলা আওয়ামী লীগ নেতা ও পানিসারা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ নওশের আলী, যশোর জেলা যুবলীগের সহ-সভাপতি  আজহার আলী, ঝিকরগাছা উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ও উপজেলা যুবলীগ নেতা রফিকুল ইসলাম বাপ্পী, উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা যুবলীগ নেতা শামীম রেজা, ঝিকরগাছা উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান সেলিম রেজা, বাঁকড়া ইউনিয়ন চেয়ারম্যান নেছার আলী, ঝিকরগাছা উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা খায়রুল হুদা রাসেল, ঝিকরগাছা উপজেলা যুবলীগ নেতা জাফিরুল হক, উপজেলা যুবলীগ নেতা আজহারুল ইসলাম লাবু, বাঁকড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ নেতা হাফিজুর রহমান, আব্দুস সামাদ দপ্তরী। ত্রিমহিনী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক বকুল বিশ্বাস, ত্রিমহিনী ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আনিসুর রহমান, যুবলীগ নেতা মিঠু বিশ্বাস, ইব্রাহীম খলিল, যুবলীগ নেতা শামীম পারভেজ,  ঝিকরগাছা উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি এহসানুল হাবীব শিপলু, সাধারণ সম্পাদক কামাল হোসেন, উপজেলা ছাত্রলীগ নেতা নাঈমুর রহমান হৃদয়, হান্নান হোসেন, পৌর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক তৌফিক আলম কৌশিক, ছাত্রনেতা শিহাব উদ্দীন রাজ, ছাত্রনেতা হেদায়েত হোসেন, শাহরিয়ার নিলয়, আরিফুল ইসলাম তুষান, মিঠু, রানা সহ উপজেলা আওয়ামী পরিবারের বিভিন্ন নেতৃবৃন্দ।

কুয়েত ভিসা ব্যবসায়ী আব্দুল বারেক বাংলাদেশে গ্রেপ্তার,ভুক্তভোগীদের আনন্দ প্রকাশ, ক্ষতিপূরণ দাবী

কুয়েত ভিসা ব্যবসায়ী আব্দুল বারেক বাংলাদেশে গ্রেপ্তার,ভুক্তভোগীদের আনন্দ প্রকাশ, ক্ষতিপূরণ দাবী






দাইয়ানুর রহমান মিষ্টারনুর, কুয়েত প্রতিনিধিঃ    
কুখ্যাত ভিসা ব্যবসায়ী আব্দুল বারেক কুয়েত থেকে পালাতক আসামী বাংলাদেশ কুমিল্লা জেলা থেকে প্রশাসনের হাতে গ্রেপ্তার হয়েছে যেনে ভুক্তভোগী শ্রমিকরা খুশি হয়েছেন। আব্দুল বারেক দ্বারা প্রতারিত কুয়েত প্রবাসী বাংলাদেশী শ্রমিকরা গ্রেপ্তারকৃত বারেকের থেকে তাদের টাকা ফেরতের দাবি জানান ও এমন প্রতারকের উপযুক্ত শাস্তি দাবি করেন এই আব্দুল  বারেক ভিসা ব্যবসা হুন্ডির ব্যবসা করে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন বাংলাদেশী কুয়েত গামী শ্রমিকের কাছে থেকে। বারেক দ্বারা কুয়েতে ২/৩ বছরের মধ্যে প্রায় দুই হাজারেরও বেশি শ্রমিক কুয়েত এসেছেন তার মধ্যে অন্য অন্য কম্পানি থেকে কম দামে  ভিসা ক্রয় করে বেশি দামে বিক্রি করেছেন আর নিজের কুয়েতি মালিকের মাধ্যমে লাইসেন্স করে নতুন কম্পানি খুলে করলো জালিয়াতি তার কম্পানির লাইসেন্স থেকে কুয়েত গভমেন্ট থেকে ভিসা ইসু হয় ২১৫/২৫০ জনের মতো কিন্তু বারেক জালিয়াতি করে ভিসা বের করে ৭১৫/৭৫০ টা সেই ভিসায় যারাই কুয়েতে প্রবেশ করছে তারা সবাই  অবৈধ হয়েছে বর্তমানে।
আমরা জানতে চাই বাকি ৫০০টি ভিসা সম্পূর্ণ ভুঁয়া ভাবে এই দেশের নাগরি দ্বারা অবৈধ  করছে  আমাদের শ্রমিকদের  । বাংলাদেশ থেকে আসা শ্রমিক ৭/৮ লাখ টাকার বিনিময় কুয়েতে এসে সবাই এখন কষ্টের সাগরে ভাসছে। এখন এই আব্দুল বারেক দেশে গ্রেপ্তার হইছে কিন্তু টাকার বিনিয়ে যাতে জামিন না পায় যদি সত্যিকার মায়ের দুধ খেয়ে থাকেন ঈমান থেকে থাকে তাহলে কেও বারেকের পক্ষে যেনো উকালাতী করবেন না প্লিজ। অনুরোধ রইলো দেশ ও জাতির স্বার্থে এই ভুক্তভোগী শ্রমিক ও তাদের পরিবারের স্বার্থে।
বারেকের বিষয়  সম্পত্তি বিক্তি করে ভুক্তভোগীদের সমস্যা সমাধান করুণ। এটাই দাবি ভুক্তভোগীদের আর সরকার ও সরকারের উচ্চপদস্থ সকল কর্মকর্তা ও রাজনৈতিক প্রতিনিধির কাছে দাবি প্রতিটা ভিসা ব্যবসায়ীদের বিচার হোক বাংলাদেশের মাটিতে।
এদের যেনো না ছাড়া হয়। যথাযথ কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে যেন সকল ক্ষতিগ্রস্ত শ্রমিক পায় তার জন্য ভুক্তভোগীরা জোরালো দাবী জানিয়েছেন।         

২ নং পাশাপোল ইউনিয়ন যুবলীগের পক্ষ থেকে বৃক্ষ রোপণ

২ নং পাশাপোল ইউনিয়ন যুবলীগের পক্ষ থেকে বৃক্ষ রোপণ



নিউজ ডেস্কঃ
প্রধানমন্ত্রী দেশ রত্ন শেখ হাসিনার  নির্দেশে  সারা দেশব্যাপী বৃক্ষ রোপণ  কর্মসূচির অংশ হিসেবে যশোর জেলার চৌগাছা উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক দেবাশীষ মিশ্র জয় ও যুগ্ন আহ্বায়ক সৈয়দ শরিফুল ইসলামের দিক নির্দেশনায় ২ নং পাশাপোল ইউনিয়ন যুবলীগের বৃক্ষ রোপণ করা হয় ৪ নং ওয়ার্ড বুড়িন্দিয়া গ্রামে। এ সময় উপস্হিত ছিলেন  পাশাপোল ইউনিয়ন যুবলীগের নেতাকর্মী, আরও  উপস্থিত ছিলেন  পাশাপোল ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ও যুবলীগ নেতা প্রভাষক মোঃ সবুজ হোসেন, ২ নং পাশাপোল ইউনিয়ন যুবলীগের  সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ আশরাফুল ইসলাম পাশাপোল ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক  মোঃ সোহাগ হোসেন, মোঃ মফিজুর রহমান যুব নেতা মোঃ জাহাঙ্গীর মাষ্টার  যুবলীগ নেতা মোঃ মিলন সহ আরো অনেকে।

ঝিনাইদহ হলিধানী ইউনিয়ন পরিষদের সচিবের বিদায় সংবর্ধনা ও নবাগত সচিবের অভ্যর্থনা

ঝিনাইদহ হলিধানী ইউনিয়ন পরিষদের সচিবের বিদায় সংবর্ধনা ও নবাগত সচিবের অভ্যর্থনা






খোন্দকার আব্দুল্লাহ বাশার 
( ঝিনাইদহ জেলা প্রতিনিধি) 



১২ জুলাই রোববার সকাল ১০ টায় সদর উপজেলার হলিধানী ইউনিয়ন পরিষদের  সম্মেলন কক্ষে সচিবের বিদায় সংবর্ধনা ও নবাগত সচিব এর অভ্যর্থনার আয়োজন করা হয়।

উক্ত অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন,ইউপি সদস্য আবুল হোসেন। বিদায়ী সচিব শহিদুল ইসলাম দীর্ঘ ৪ বছরের কর্মস্থল ছিল অত্র ইউপি। তিনি তার বক্তব্যে বিগত দিনের সৃতি চারন করে বলেন,মানুষ মাত্রই ভুল হতে পারে,তাই  কর্মস্থলে ভুল ভ্রান্তি 
হওয়াটা স্বাভাবিক। তাই ভুল হলে ক্ষমার দৃষ্টিতে দেখার আহবান জানান, তিনি পরিষদের হিসাব নিকাশ স্থায়ী-অস্থায়ী সম্পদের বিবরণ সহ ক্ষমতা হস্তান্তর করেন নবাগত সচিব মোঃ শওকত আলী ও ইউপি চেয়ারম্যান মতিয়ার রহমান এর নিকট। 

উক্ত অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক আজিজ মাষ্টার ও অত্র ইউনিয়নের পরিষদের সকল সদস্য ।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, ইউনিয়ন যুবলীগের যুগ্ন আহবায়ক পারভেজ মিয়া,যুবলীগ নেতা লাল্টু, ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারের উদ্যোক্তা পরিচালক জহুরুল হক প্রমুখ।

সাতক্ষীরা পুলিশ সুপারের উদ্যোগে আশাশুনিতে খাদ্য সহায়তা বিতরণ

সাতক্ষীরা পুলিশ সুপারের উদ্যোগে আশাশুনিতে খাদ্য সহায়তা বিতরণ






আহসান উল্লাহ বাবলু আশাশুনি (সাতক্ষীরা)    প্রতিনিধি:

সাতক্ষীরা পুলিশ সুপারের উদ্যোগে করোনা ভাইরাস ও ঘুর্ণিঝড় আম্পানে সর্বাধিক ক্ষতিগ্রস্ত হত দরিদ্র্য ৮ শত পরিবারের মাঝে মাথা প্রতি ১০ কেজি গমের আটা বিতরন করা হয়েছে। ১২ জুন রবিবার বিকাল আশাশুনি উপজেলার আনুলিয়া ইউনিয়নে আশাশুনি থানা পুলিশের মাধ্যমে ইউনিয়নে ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের মাঝে আটা বিতরন করা হয়েছে। 

বিভিন্ন সময়ে কাবিখা প্রকল্পে আটককৃত টি আর এর গম আদালতের নির্দেশনা অনুযায়ী দূর্গত এলাকায় বিতরণের কর্মসূচীতে ক্ষতিগ্রস্ত মানুষদের মাঝে বিতরন করা হয়। ৫ জুলাই রোববার ভার্চুয়াল শুনানী শেষে সোমবার ৬ জুলাই দুপুরে সাতক্ষীরার সিনিয়র স্পেশাল জজ আদালতের বিচারক শেখ মফিজুর রহমান সাতক্ষীরায় পুলিশের অভিযানে জব্দকৃত ৬৫৫ বস্তা গম আম্পান কবলিত এলাকায় ক্ষতিগ্রস্থ মানুষের মাঝে বিতরণের নির্দেশ দেন।

আদালতের নির্দেশ অনুযায়ী ও সাতক্ষীরা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমানের উদ্যোগে সুপার সাইক্লোন আম্ফানে অপেক্ষাকৃত বেশি আক্রান্ত এরই ধারাবাহিকতায় আনুলিয়া ইউনিয়নের ক্ষতিগ্রস্থ জনগনের মাঝে খাদ্য সহায়তা বিতরনকালে উপস্থিত ছিলেন, আশাশুনি থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মাদ গোলাম কবির, ইন্সপেক্টর তদন্ত মাহফুজুর রহমান, আনুলিয়া ইউপি চেয়ারম্যান আলমগীর আলম লিটন, আশাশুনি প্রেসক্লাবে সভাপতি জিএম আল-ফারুক, প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি জিএম মুজিবর রহমান, রিপোর্টার্স ক্লাবের সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক বি এম আলাউদ্দীন এস আই রিয়াজ, এসআই শেখ বিল্লাল হোসেন প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন।

করোনা আপডেট

করোনা আপডেট




নিউজ ডেস্কঃ (১২ জুলাই ২০২০)
নমুনা পরিক্ষা- ১১০৫৯ জন
সংক্রমিত- ২৬৬৬ জন
সুস্থ- ৫৫৮০ জন
মৃত্যু- ৪৭ জন

 মোট হিসাব-
সংক্রমিত- ১৮৩৭৯৫ জন
সুস্থ- ৯৩৬১৪ জন
মৃত্যু- ২৩৫২ জন

৩ দফা দাবীতে বেসরকারী কলেজ অনার্স মাস্টার্স শিক্ষক ফোরামের উদ্দ্যোগে দিনাজপুরে ঘন্টাব্যাপি মানববন্ধন কর্মসুচী পালন

৩ দফা দাবীতে বেসরকারী কলেজ অনার্স মাস্টার্স শিক্ষক ফোরামের উদ্দ্যোগে দিনাজপুরে ঘন্টাব্যাপি মানববন্ধন কর্মসুচী পালন



মামুনুর রশিদ,প্রতিনিধি দিনাজপুরঃ
  জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত বেসরকারী কলেজে অনার্স-মাস্টার্স কোর্সে বৈধভাবে নিয়োগপ্রাপ্ত পাঠদানরত শিক্ষকদের জনবল কাঠামো ও এমপিও নীতিমালা ২০১৮তে অর্ন্তভুক্ত করে এমপিও ভুক্তির দাবীতে দিনাজপুরে মানববন্ধন অনুষ্টিত।
৩ দফা দাবীতে আজ রবিবার সকালে বাংলাদেশ বেসরকারী কলেজ অনার্স মাস্টার্স শিক্ষক ফোরামের ব্যানারে দিনাজপুর প্রেসক্লাবের সন্মুখ সড়কে ঘন্টাব্যাপি মানববন্ধন কর্মসুচী পালন করা হয়েছে।
বাংলাদেশ বেসরকারী কলেজ অনার্স মাস্টার্স শিক্ষক ফোরামের ব্যানারে আহবায়ক মহাদেব শর্মার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সংক্ষিপ্ত সমাবেশে বক্তারা বলেন,দেশের বেসরকারী কলেজ অনার্স মাস্টাস শিক্ষক সমাজ আজ চরমভাবে অবহেলিত দীর্ঘদিন আন্দোলন সংগ্রাম করেও ন্যায্য অধিকার থেকে বঞ্চিত হয়ে আসছে। করোনা মহামারীর এই দু:সময়ে শিক্ষকরা দারুন   কষ্টের মাঝে দিনাতিপাত করছে। 
তারা বলেন,জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি বরাবরে সাহায্যের আবেদন করেছিলাম কিন্তু তিনি প্রত্যাখান করেছেন। আমরা এখন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার কাছে শিক্ষক সমাজকে রক্ষার নিবেদন করছি। মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন,সংগঠনের কেন্দ্রীয় সদস্য সচিব মো: মেহেরাব আলী,জাহিদুল ইসলাম,শরিফুল ইসলাম,ফারিহা শারমিন মিতু,হবিবুর রহমান প্রমুখ। 
উল্লেখ্য, বাংলাদেশ বেসরকারী কলেজ অনার্স মাস্টার্স শিক্ষক ফোরামের ৩ দফা দাবীর মধ্যে রয়েছে অনার্স মাস্টার্স কোর্সে নিয়োগপ্রাপ্ত নন এমপিও শিক্ষকদেরকে জনবলকাঠামো ও এমপিও নীতিমালা ২০১৮তে অর্ন্তভুক্ত করতে হবে, ৫ হাজার ৫০০ জন শিক্ষকের জন্য প্রায় ১৪৬ কোটি ৫০ লাখ টাকা বরাদ্ধ দিয়ে অতিদ্রুত অনার্স মাস্টার্স শিক্ষকদেরকে এমপিও ভুক্ত করতে হবে ও বর্তমান করোনা ভাইরাসের প্রার্দূভাবে অনার্স-মাস্টার্স শিক্ষকদের মানবেতর জীবন হতে কাটিয়ে উঠতে বিশেষ প্রনোদনা ঋন ১২০০ কোটি টাকা চাই।

আশাশুনি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে মোস্তাকিম এর পক্ষ থেকে স্ট্রীট ল্যাম্প স্থাপন

আশাশুনি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে মোস্তাকিম এর পক্ষ থেকে স্ট্রীট ল্যাম্প স্থাপন





আহসান উল্লাহ বাবলু, আশাশুনি (সাতক্ষীরা) প্রতিনিধিঃ 

আশাশুনি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এবিএম মোস্তাকিম এর পক্ষ থেকে ২টি স্ট্রীট ল্যাম্প স্থাপন করা হয়েছে। রবিবার সকালে আশাশুনি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এ সোলার স্ট্রীট ল্যাম্প স্থাপন করা হয়। স্ট্রীট ল্যাম্প স্থাপনকালে  উপজেলা স্বাস্থ্য ও পঃপঃ কর্মকর্তা ডাঃ সুদেষ্ণা সরকার বলেন,আশাশুনি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে অন্ধকার থেকে আলোয় রূপ পেল। স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এখন আলোয় ঝলমল করছে। হাসপাতালের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা যেমন উপকৃত হয়েছে তেমনি হাসপাতালে আসা রোগী দর্শনার্থীরাও সুবিধা পেয়েছে। তিনি আরও বলেন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স নিয়ে  যে কোন সমস্যার কথা বললে উপজেলা চেয়ারম্যান সাথে সাথে সেটা সমাধান করে দেন।তিনি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের পক্ষ থেকে এবিএম মোস্তাকিমকে আন্তরিক ধন্যবাদ ও অভিনন্দন জানান। এসময় উপস্থিত ছিলেন মেডিকেল অফিসার ডাঃ শাহানুর ইসলাম মিল্কি, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও রিপোর্টার্স ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সামাদ বাচ্চু, স্বাস্থ্য সহকারি মোক্তারউজ্জামান স্বপন প্রমুখ।

নওগাঁয় ইসরাফিল আলম এমপি'র সুস্থতা কামনা করে যুবলীগের উদ্যোগে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত

নওগাঁয়  ইসরাফিল আলম এমপি'র সুস্থতা কামনা করে  যুবলীগের উদ্যোগে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত






 মোঃ ফিরোজ হোসাইন
 রাজশাহী ব্যুরো

 নওগাঁর 
আত্রাই ও রাণীনগরের জনসাধারণের উন্নয়নের স্বপ্নদ্রষ্টা,
 নওগাঁ-০৬(আত্রাই-রাণীনগর) এর স্থানীয় সংসদ সংসদ সদস্য,শ্রম ও কর্মসংস্থান এবং পাট ও বস্ত্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য ও নওগাঁ জেলা আওয়ামীলীগের  যুগ্ম-সাধারন সম্পাদক,মোঃ ইসরাফিল আলম এমপির দ্রুত সুস্থতায় রোগমুক্তি কামনা করে আত্রাই উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের  উদ্যোগে আত্রাই উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান ও আত্রাই উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের সভাপতি শেখ মোঃ হাফিজুল ইসলাম এর আয়োজনে 

রবিবার (১২ই জুলাই) সকাল ১১.৩০ টায়  আত্রাই উপজেলা আওয়ালীগের দলীয় কার্যালয়ে আত্রাই উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের সভাপতি শেখ মোঃ হাফিজুল ইসলাম এর সভাপতিত্বে (ভারপ্রাপ্ত) সাধারণ সম্পাদক মোঃ রাফিউল ইসলামের সঞ্চালনায়
 দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।  

 দোয়া মাহফিলে উপস্থিত ছিলেন, আত্রাই উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আলহাজ্ব মোঃ এবাদুর রহমান প্রামানিক, উপজেলা আওয়ামী লীগের
 সভাপতি শ্রী নৃপেন্দ্রনাথ দও দুলাল,সাধারণ সম্পাদক চৌধুরী গোলাম মোস্তফা বাদল,উপজেলা শাখার কেন্দ্রীয় শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক, সরদার শোয়েব 
স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক, আবু হেনা মোস্তফা কামাল,
আত্রাই প্রেসক্লাব সভাপতি,রুহুল আমিন,সাধারণ সম্পাদক নাজমুল হোসেন সেন্টু,সাংবাদিক আল আমিন মিলন, তপন সরকার, সাংবাদিক ও সম্পাদক এমরান মাহমুদ প্রত্যয় সাংবাদিক ফিরোজ হোসাইন সহ সকল আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতা কর্মী উপস্থিত ছিলেন।

উক্ত দোয়া মাহফিলে নওগাঁ-০৬ আসনের সংসদ সদস্য মো. ইসরাফিল আলম এমপির দ্রুত সুস্থতা কামনা এবং সেই সাথে প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনা সহ দেশবাসীকে করোনা ভাইরাস সহ সকল রোগ থেকে মুক্তির জন্য দোয়া করা হয়েছে।

গত ৫ জুলাই থেকে নওগাঁ-০৬ (আত্রাই-রানীনগর) এর সাংসদ সদস্য মোঃ ইসরাফিল আলম এমপি ঢাকা স্কয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন।

 বর্তমানে তাকে ডাক্তারের পরামর্শে কেবিনে স্থানান্তর করা হয়েছে এবং তার শারীরিক অবস্থা অনেকটা উন্নতি হয়েছে। তিনি আত্রাই-রাণীনগরের  জনসাধারণ সহ দেশবাসীর কাছে দোয়া চেয়েছেন। 

দোয়া মাহফিল পরিচালনা করেন,উপজেলা কেন্দ্রীয় মসজিদের পেশ ইমাম
 মোঃ শাহিন আলম । দোয়া মাহফিল শেষে উপস্থিত সবার মাঝে তোবারক বিতরন করা হয়।

ঝিনাইদহ জেলা স্কাউটস এর পক্ষ থেকে বিভিন্ন স্থানে দোকানদার ও রিকসা চালকদের মাঝে ফ্রি মাস্ক বিতরণ

ঝিনাইদহ জেলা স্কাউটস এর পক্ষ থেকে বিভিন্ন স্থানে দোকানদার ও রিকসা চালকদের মাঝে ফ্রি মাস্ক বিতরণ






খোন্দকার আব্দুল্লাহ বাশার, 
(ঝিনাইদহ  জেলা প্রতিনিধি) 




ঝিনাইদহে করোনা ভাইরাস CVD-19 প্রতিরোধে - সরকারি বিধি নিষেধ মেনে চলতে,
"সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে, স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলতে, সবাই ঘরে থেকে সুস্থ থেকে নিজেকে রক্ষা করতে, মাস্ক ব্যবহার করতে, মানুষ কে সচেতন করতে, রাস্তায় রাস্তায় অসহায় মানুষের মাঝে ফ্রি মাস্ক বিতরন করা হচ্ছে ।
ঝিনাইদহ জেলা স্কাউটস এর পক্ষ থেকে রবিবার সকাল ১০টার সময় শহরের পোস্ট অফিস মোড় সহ শহরের বিভিন্ন স্থানে দোকানদার ও রিকসা চালকদের মাঝে ফ্রি মাস্ক বিতরন করা হয়েছে। এ সময় উপস্থিত ছিলেন,জনাব  সরোজ কুমার নাথ ঝিনাইদহ জেলা প্রশাসক ও সভাপতি বাংলাদেশ স্কাউটস ঝিনাইদহ, ঝিনাইদহ জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক,নগর পিতা আলহাজ্ব সাইদুল করিম মিন্টু, মো: মহিউদ্দিন সাধারন সম্পাদক বাংলাদেশ স্কাউটস ঝিনাইদহ জেলা শাখা,আবু জাফর সহকারি কমিশনার উন্নয়ন,এবং সাংবাদিক এম,এ জলিল,নিবার্হী সদস্য ঝিনাইদহ প্রেসক্লাব প্রমূখ ।।

প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি, কোটচাঁদপুরে ইজিবাইক ও আলমসাধু কি অইনের উর্ধ্বে-?

প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি, কোটচাঁদপুরে  ইজিবাইক ও আলমসাধু কি অইনের উর্ধ্বে-?




খোন্দকার আব্দুল্লাহ বাশার 
( ঝিনাইদহ জেলা প্রতিনিধি) 





করোনা সংক্রমণ রোধে সাধারণ ছুটির পর সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে গত ৩১ মে থেকে খুলে দেয়া হয়েছে অফিস, আদালত। চলছে গণপরিবহনও। পাশাপাশি বিপণী বিতান, হাট, বাজারে সাধারণ মানুষকে যাতায়াত ও কর্মকান্ড পরিচালনার নির্দেশনা দিয়েছে সরকার  কিন্তু ঝিনাইদহের কোটচাঁদপুরে রাস্তায় ইজিবাইক ও আলমসাধু চলাচলরত যাত্রীদের ক্ষেত্রে সামাজিক দূরত্ব  ও স্বাস্থ্যবিধি  মোটেও মানা হচ্ছে না। ইতিমধ্যে ঝিনাইদহ জেলাকে গ্রীন জোন হিসাবে চিহ্নিত করায় ও লকডাউন না দেওয়ায়  জনসাধারন সামাজিক দূরত্ব  ও স্বাস্থ্যবিধি  না মেনে   ইজিবাইকে চালকসহ ৬ জন ও আলমসাধুর চালকসহ ৮-১০ জন পর্যন্ত  মুখে মাক্স ব্যবহার না করে চলাচল করতে দেখা যাচ্ছে।  
 সরেজমিনে তথ্যানুসন্ধানে গিয়ে কোটচাঁদপুর মেইন বাসষ্ট্যান্ডে ইজিবাইকের চালক ও সাধারন যাত্রীদের সাথে কথা বললে তারা জানান প্রয়োজনীয় কাজের জন্য ঘরের বাইরে বের হয়েছেন। 
আবার কিছু যাত্রী বলেন দীর্ঘদিন কর্মহীন হয়ে পড়ে থেকে তাদের জীবনযাত্রা এক বিভিষীকা হয়ে পড়েছে, পরিবারের সদস্যদের মুখে এক মুঠো খাবার তুলে দেবার জন্য তারা ঘরের বাইরে বের হচ্ছে। যার কারনে ইচ্ছা অনিচ্ছায় সামাজিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলাচল ব্যাহত হচ্ছে।
পরিশেষে কোটচাঁদপুর উপজেলা প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি, এই মূহুর্তে যদি সবাইকে সামাজিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার জন্য নানা কর্মসূচি গ্রহন না করে তাহলে দিন দিন কোটচাঁদপুর উপজেলায় মহামারি করোনা ভাইরাস আরো বেশি খারাপের দিকে ঝুঁকে পড়বে।১২জুলাই রবিবার সকালে মেন বাসস্ট্যান্ড থাকে তোলা ছবি। কলেজ স্টান্ড, মেন বাসস্ট্যান্ডে, বলুহার বাসস্ট্যান্ডে সহ কোটচাঁদপুর উপজেলার প্রতান্ত অঞ্চলে এমন যানজট দেখা যাচ্ছে।  প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করছে ব্যাবস্থা গ্রহণের জন্য সচেতন মহল।

নওগাঁর হাট বাজার গুলোতে পড়েছে খলশানি বিক্রির ধুম

নওগাঁর হাট বাজার গুলোতে পড়েছে খলশানি বিক্রির ধুম




মোঃ ফিরোজ হোসাইন 
 রাজশাহী ব্যুরো

দেশের অনেক এলাকায় আগাম বর্ষার আগমন।  নওগাঁর আত্রাই উপজেলায়  বর্ষা মৌসুমের আগেই এসেছে বর্ষা
মাঠে ঘাটে পানি আশার শুরু থেকেই বিভিন্ন হাট বাজারে দেশী প্রজাতির ছোট জাতের মাছ ধরার গ্রাম বাংলার সহজ লভ্য প্রাচীনতম উপকরণ বাঁশের তৈরি চাঁই বা খলশানি বিক্রির ধুম পড়েছে। উপজেলার হাটবাজারগুলোতে প্রতিদিন শত শত খলশানি বিক্রি হচ্ছে। সরেজমিনে উপজেলার বিভিন্ন হাট বাজার ঘুরে দেখা যায় হাট গুলোতে প্রতিদিন শত শত খলশানি বিক্রি হচ্ছে। বৃহস্পতিবার উপজেলার ঐতিহ্যবাহি আহসানগঞ্জও বান্দাইখাড়া হাটের খলশানি পট্টিতে বেচা কেনার জন্য জনসাধারণের উপস্থিতি চোখে পড়ার মতো।তথ্যঅনুসন্ধানে জানাযায়, উপজেলার সিংসাড়া সহ পাশের উপজেলার মির্জাপুর, ঝিনা, খট্টেশ্বর, কৃষ্ণপুর-মালঞ্চিসহ বিভিন্ন বান্দাইখাড়া, হাটকালুপাড়া, গ্রামের ঋষি সম্প্রদায়ের লোকেরা তাদের স্ত্রী, পূত্র, কন্যাসহ পরিবারের সকল সদস্যরা মিলে এই অবসর মৌসুমে তাদের নিপুণ হাতের তৈরি করে বাড়ি থেকে নিয়ে এসে উপজেলার আহসানগঞ্জ, কাশিয়াবাড়ি, সুটকিগাছা, পাইকরা, বজ্রপুর, বান্দাইখাড়া, মির্জাপুর-ভবানিপুরসহ বিভিন্ন হাটে বিক্রির জন্য পসরা সাজিয়ে দাঁড়িয়ে থাকে। বাঁশ কটের সুতা এবং তাল গাছের আঁশ দিয়ে তৈরি এসব খলশানি মানের দিক দিয়ে ভালো হওয়ায় স্থানীয় চাহিদা মিটিয়ে দেশের অঞ্চল ভেদে বিশেষ করে হাওর অঞ্চলে মাছ শিকারীরা এখন থেকে পাইকারি মূল্যে তা নিয়ে যায়। ফলে এ পেশায় জড়িত পরিবারগুলো বর্ষা মৌসুমে এর কদর বেশিও যথাযথ মূল্য পাওয়ায় মাত্র দুই তিন মাসেই খলসানি বিক্রি করেই তারা প্রায় বছরের খোরাক ঘরে তুলে নেয়।লাভ খুব বেশি না হলেও বর্ষা মৌসুমে এর চাহিদা থাকায় রাত দিন পরিশ্রমের মাধ্যমে খলশানি তৈরি করে তারা বেজাই খুশি। এক দিকে যেমন সময় কাটে অন্য দিকে লাভের আশায় বাড়ির সকল সদস্যরা মিলে খলশানি তৈরি কাজ করে অভাব অনঠনের কবল থেকে একটু সুখের নিশ্বাস ফেলে।এসব খলশানি তৈরিতে প্রকার ভেদে খরচ হয় ১০০ থেকে ২শত টাকা, বিক্রি হয় ১০০ থেকে ২৫০ টাকা পর্যন্ত বিক্রি হচ্ছে। এতে করে খুব বেশি লাভ না হলেও পৈত্রিক এ পেশা ছাড়তে তারা নারাজ। আধুনিকতার উৎকর্ষের তৈরি ছোট জাতের মাছ ধরার সুতি , ভাদায় ও কারেন্ট জালের দাপটের কারণে দেশি প্রযুক্তির বাঁশের তৈরি খলশানি সামগ্রী এমনিতেই টিকে থাকতে পারছে না।কিন্তু জীবনের তাগিদে তারা একেবারে কর্মহীন থাকতেও চায় না। তবে সরকারি বেসরকারী পৃষ্টপোষকতা ও সহযোগীতা পেলে মৌসুমের আগে বেশি পরিমান খলশানি মজুত করতে পারলে ভরা মৌসুমে বেশি দামে বিক্রি হলে লাভ ভালো হয়। উপজেলার একাধিক খলশান বিক্রেতার সাথে কথা বললে তারা জানান, খলশানি তৈরির সামগ্রীর দাম আগের চেয়ে অনেক বেড়েছে। তাই আগের মতো আর লাভ হয় না। দীর্ঘ দিন থেকে বাপ দাদার সাথে এ ব্যবসায় জড়িত তাই ছাড়তেও পাড়ছি না। তারা আরও জানান, বর্ষা এবার আগাম শুরু হওয়ায় খলশানির কদরও বেড়েছে। হাট বাজারগুলোতেও পড়েছে বিক্রির ধুম।

মনসুর নগর থানা আঃলীগের উদ্দ্যোগে মরহুম নাসিমের আত্মার মাগফেরাত ও দোয়া মাহফিল

মনসুর নগর থানা আঃলীগের উদ্দ্যোগে মরহুম নাসিমের আত্মার মাগফেরাত ও দোয়া মাহফিল



মাসুদ রানা সিরাজগঞ্জ জেলাপ্রতিনিধি - জাতীয় চার নেতার অন্যতম শহীদ এম এ মনসুর আলীর পুত্র বির্ষীয়ান  নেতা ও সাবেক স্বরাষ্ট, স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম এমপির মৃত্যুতে তার রূহের মাগফিরাত ও শান্তি কামনায় মনসুর নগর থানা আঃলীগের উদ্দ্যোগে ১১ জুলাই বাদ মাগরিব দলীয় কার্যালয়ে দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়। বাংলাদেশ কৃষকলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি ও মনসুর নগর থানা আঃলীগের আহব্বায়ক আব্দুল লতিফ তারিন এর সভাপতিত্বে দোয়া মাহফিল পূর্ব সংক্ষিপ্ত আলোচনা করে দলীয় নেতা কর্মীবৃন্দ বলেন আঃলীগের বর্ষীয়ান নেতা সাবেক সফল স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোঃ নাসিম ছিলেন দলের নিবেদীত প্রাণ ও জননেতা। গণতান্ত্রিক অধিকার আদায়ের সকল আন্দোলনে তিনি ছিলেন অকুতো ভয় সৈনিক। জাতীয় এই নেতাকে হারিয়ে গোটা বাংলাদেশ আজ বাকরুদ্ধ। স্বীয় কর্মের মাধ্যমে তিনি বেচে থাকবেন গণমানুষের হৃদয়ে সিরাজগঞ্জবাসির মনে।দোয়া মাহফিল সঞ্চালনা করেন বাগবাটি ইউনিয়ণ আঃলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শহিদুল ইসলাম শহীদ। এ সময় উপস্থিত ছিলেন সিরাজগঞ্জ জেলা আঃলীগের সহ দপ্তর সম্পাদক এহসানুল হক এহসান, জেলা পরিষদের সদস্য ও মনসুর নগর থানা আঃলীগের যুগ্ন আহব্বায়ক আলহাজ্ব গোলাম রব্বানী তাং, সাবেক চেয়ারম্যান ও মনসুর নগর থানা আঃলীগের যুগ্ন আহব্বায়ক আমজাদ হোসেন, রতনকান্দি ইউনিয়ন আঃলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ছাইদুল ইসলাম জুরান।ছোনগাছা ইউনিয়ন আঃলীগের সভাপতি ও চেয়ারম্যান শহিদুল আলম, সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মাদ আলী জিন্নাহ, বাগবাটি ইউনিয়ন আঃলীগের সাধারণ সম্পাদক ও চেয়াম্যান জাহাঙ্গীর আলম, রতনকান্দি ইউপি চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন, বহুলী ইউনিয়ন আঃলীগের সভাপতি মঞ্জুরুল আলম, মেছরা ইউনিয়ন আঃলীগের নেতা মামুনুর রশিদ সহ রতনকান্দি, বাগবাটি, ছোনগাছা, বহুলি ও মেছরা ইউনিয়নের এবং মনসুর নগর থানা আঃলীগের সহযোগী সংগঠনের সকল নেতৃবৃন্দ প্রমুখ। নেতার প্রতি গভীর সমবেদনা জানান ও মাহফিল শেষে প্রিয় নেতার আত্মার মাগফেরাত কামনা সহ দেশ ও জাতীর মঙ্গল কামনায় বিশেষ মোনাজাত করা হয় ।

আশাশুনির প্রতাপনগরে বানভাসি অধিকাংশ মানুষ সরকারি বরাদ্দকৃত ত্রাণ বঞ্চিতের অভিযোগ

আশাশুনির প্রতাপনগরে বানভাসি অধিকাংশ মানুষ সরকারি বরাদ্দকৃত ত্রাণ বঞ্চিতের অভিযোগ






আহসান উল্লাহ বাবলু, আশাশুনি (সাতক্ষীরা) প্রতিনিধিঃ  আশাশুনির প্রতাপনগর ইউনিয়নে ঘূর্ণিঝড় আম্পানে ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য বরাদ্দকৃত ত্রাণ না পাওয়ায় প্রতিকার প্রার্থনা করে গণস্বাক্ষরিত অভিযোগ করা হয়েছে। উপজেলার প্রতাপনগরের সামাদ মহলাদারসহ একাধিক অভিযোগকারীর স্বাক্ষরিত অভিযোগে জানা গেছে, গত ২০ মে ঘূর্ণিজড় আম্পানে ইউনিয়নের ১০/১২ টি স্থানে ভেঙ্গে নদীর লোনা পানি ভেতরে প্রবেশ করে। ঈদ উল ফেতরের ৩ দিন পূর্বে পাউবো’র বেড়িবাঁধ ভেঙে এলাকা প্লাবিত হয়, কিন্তু ঈদে বানভাসি অধিকাংশ মানুষ ১ কেজি চালও কেউ পায়নি। করোনার ত্রাণ থেকেও অধিকাংশ মানুষকে বঞ্চিত করা হয়েছে। নগদ টাকা, শুকনা খাবার, দুধ, চাল, ঢেউটিনসহ বহু ত্রাণ ও সহায়তা সামগ্রী প্রধানমন্ত্রী ও জেলা প্রশাসক বরাদ্দ দিয়েছেন। কিন্তু সিংহ ভাগ চেয়ারম্যান ও তার লোকজন লুটেপুটে খেয়েছেন এবং এখনও খাচ্ছেন। পাউবো’র বেড়িবাঁধ স্বেচ্ছাশ্রমে বাধার কাজ করা শ্রমিকরা জেলা প্রশাসকের ঘোষণা ও বরাদ্দের পরও (১০ কেজি করে চাল) অনেক ব্যক্তিকে দেয়া হয়নি। অথচ ৮ হাজার পরিবারকে চাল দেয়ার মাস্টার রোল তৈরি করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেন। তার বিরুদ্ধে দুর্নীতি ও অনিয়মের খবর ১৭ থেকে ১৯ জুন ইলেক্ট্রনিক্স ও প্রিন্ট মিডিয়ায় প্রকাশিত হওয়ায় চৌকিদার দিয়ে কিছু কিছু মানুষকে ডেকে চাল দেয়া হয়। অথচ মাষ্টার রোল জমা দিয়ে চাউল বিতরণ দেখানো হয়েছে তার কয়েকদিন পূর্বে। চেয়ারম্যান বানভাসীদের জন্য সকল বরাদ্ধ তার নিজস্ব কিছু লোকদের ভেতর প্রদান করে তার ছবি তুলে দেখানোর জন্য সাংবাদিকদের দিয়ে বিভিন্ন পত্রিকায় খবর প্রকাশ করিয়ে প্রমান করতে চায় ব্যাপক ত্রাণ বিতরণ করা হচ্ছে। অথচ বাস্তবে তার উল্টো। এছাড়া বিনামূল্যে বিদ্যুতের নতুন মিটার স্থাপনের জন্য প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা থাকলেও চেয়ারম্যান তার নিজস্ব কর্মী গ্রাম পুলিশ ইব্রাহিমের ভাই মুকুলের মাধ্যমে মিটার প্রতি ২ হাজার ৩শ’ টাকা করে উত্তোলন করে কয়েক লক্ষ টাকা আদায় করেছেন। কাবিটা, কাবিখা, এলজিএসপি, জলবায়ু ট্রাস্টসহ সকল সেক্টরে তার বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ করে সঠিক তদন্তপূর্বক বিহিত ব্যবস্থা গ্রহণের জোর দাবি জানিয়েছেন অভিযোগকারীগণ। ইউনিয়নবাসীর পক্ষ থেকে দুর্নীতি দমন কমিশন এবং স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রীসহ বিভিন্ন উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষ বরাবর লিখিত অভিযোগ করা হয়েছে বলে অভিযোগকারীরা জানান।
এ সম্পর্কে চেয়ারম্যান শেখ জাকির হোসেন সাংবাদিকদের বলেন, প্লাবনের পর থেকে জীবনবাজি রেখে রাতদিন মানুষের পাশে থেকেছি। ট্যাগ অফিসার, ইউপি সদস্য, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, গ্রাম পুলিশসহ এলাকার মানুষের উপস্থিতিতে সকল ত্রাণ ও সরকারি সহায়তা যথাযথ ভাবে বিতরণ করা হয়েছে। উপজেলা নির্বাহী অফিসারসহ সরকারি কর্মকর্তারা নিয়মিত এলাকা পরিদর্শন ও ত্রাণ বিতরণ তদারকি করে থাকেন। কিছু রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ ও স্বার্থান্বেষী ব্যক্তি বরাবরই কাল্পনিক ও মিথ্যা অভিযোগ এনে আমাকে হেয় প্রতিপন্ন ও কর্মকান্ডের বাধা সৃষ্টিতে অপচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। তিনি তাদের অভিযোগ মিথ্যা ও উদ্দেশ্যমূলক বলে মনে করেন।

ঝিনাইদহে আরাও ২৫ জন করোনায় আক্রান্ত এবং মৃত্যু-১

ঝিনাইদহে আরাও ২৫ জন করোনায় আক্রান্ত এবং মৃত্যু-১





সম্রাট হোসেন, শৈলকুপা (ঝিনাইদহ) সংবাদদাতাঃ

১২_৭_২০২০ইংতারিখের কোভিড-১৯ এর আপডেট তথ্য :

অফিসিয়াল ভাবে আমাদের কাছে কুষ্টিয়া_ল্যাব থেকে আরো ৪৭ টি নমুনার ফলাফল এসেছে।যার ২২জন_নেগেটিভ এবং ২৫জন_নতুন_আক্রান্ত। 

 মোট প্রাপ্ত ফলাফলের সংখ্যা২৫৬৭+৪৭=২৬১৪
নেগেটিভ_২১৯৯
আক্রান্ত_৩৯০+২৫=৪১৫

মোট_সংগৃহীত_নমুনার_সংখ্যা_২৯১৫

উপজেলা_ভিত্তিক_আক্রান্তের_মোট_সংখ্যা 
সদর_১৪৬
শৈলকূপা_৫৬+৫=৬১
হরিনাকুন্ডু_১৬+২=১৮
কালীগন্জ_১২৪+১৮=১৪২
কোটচাদপুর_২৫
মহেশপুর_২৩

আক্রান্তদের_এলাকা_সমুহ_

কালীগঞ্জ_১৮
১. নিশ্চিন্তপুর
২. বনানী পাড়া নলডাঙ্গা
৩. নরেন্দ্রপুর
৪. বেথুলি মালিয়াত
৫. নিশ্চিন্তপুর
৬. গোরস্থান পাড়া
৭. নিশ্চিন্তপুর
৮. খামার মুন্দিয়া রায়গ্রাম
৯. চাপালি
১০. আড়পাড়া
১১. আড়পাড়া
১২. বেজপাড়া সুন্দরপুর দুর্গাপুর
১৩. মোবারক গঞ্জ সুগার মিল
১৪. কলেজ পাড়া 
১৫. চাপালি
১৬. মোবারক গঞ্জ সুগার মিল
১৭. নিশ্চিন্তপুর
১৮. ফয়েলা(মৃত্যুর পরে ফলাফল পজেটিভ এসেছে)

শৈলকূপা_৫
১. দুধসর
২. শিখর পাড়া
৩. উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স 
৪. পাইক পাড়া মনোহরপুর
৫. পাইক পাড়া মনোহরপুর

হরিনাকুন্ডু_২
১. বৈঠা পাড়া
২. রামদিয়া শ্রীনগর

​মোট_সুস্থতার_সংখ্যা_১২৮+১৫=১৪৩

উপজেলা_ভিত্তিক_সুস্থতার_সংখ্যা

সদর_৪০
শৈলকূপা_১৬
হরিনাকুন্ডু_৬
কোটচাঁদপুর_১৮
কালীগন্জ_৩৮+১৫=৫৩
মহেশপুর_১০

কোভিড_১৯_হাসপাতালে_ভর্তি_রোগীর_সংখ্যা_২২

মোট_মৃত্যুর_সংখ্যা_১০
সদর_২
শৈলকূপা_৪
কালিগন্জ_৩+১=৪

রামগড়ে সন্ত্রাসীদের হামলায় যুবকের মৃত্যু

রামগড়ে সন্ত্রাসীদের হামলায়  যুবকের মৃত্যু




মাহফুজা আক্তার, খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি। 

খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলার রামগড়ে মোঃফারুক (২৭) গতকাল শনিবার বাসায় যাওয়ার পথে আনুমানিক রাত ১১ঃ০০ টায় কতিপয় অজ্ঞাত সন্ত্রাসীদের হামলার শিকার হয়।তাদের এলোপাতাড়ি আঘাতে গুরুতর আহত হয়।

পরবর্তীতে তাকে রামগড় হাসপাতালে ভর্তি করা হলে সেখানে তার অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় চট্টগ্রাম মেডিকেল হাসপাতালের উদ্দেশ্যে যাওয়ার পথে মৃত্যুবরণ করেন।
রামগড় বাসি তার হঠাৎ মৃত্যুতে গভীর ভাবে শোকাহত।

বাংলাদেশ সাংবাদিক উন্নয়ন সংস্থার কেন্দ্রীয় সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন এম.এ.মান্নান

বাংলাদেশ সাংবাদিক উন্নয়ন সংস্থার কেন্দ্রীয় সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন এম.এ.মান্নান




 নিউজ ডেস্ক : বাংলাদেশ সাংবাদিক উন্নয়ন সংস্থা কেন্দ্রীয় পরিষদের কার্যকরী সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন ডা.এম.এ.মান্নান 

 গত শনিবার,১১ জুলাই ২০২০ খ্রি.সকাল:১০.০০ টায় রাজধানীর গুলশান নিকেতন এলাকায় সংগঠনের সেন্ট্রাল কার্যালয়ে ৫৭ জন বিশিষ্ঠ কমিটি ঘোষনা করা হয়। এতে সভাপতি সাকিব ইরতেজা চৌধুরী (সাকিব সনেট) সাধারণ সম্পাদক মোঃ আবির হোসেন সহ ৫৭ জন সাংবাদিক প্রতিনিধি নির্বাচিত হয়েছেন।

ডা.এম.এ.মান্নান  টাংগাইল জেলার নাগরপুর  উপজেলার দুয়াজানী কলেজ পাড়ার এক মুসলীম পরিবারের সন্তান।তিনি দৈনিক কপোতাক্ষ নিউজ,সময় প্রবাহ নিউজ,বিডি ইউনিয়ন নিউজ এর টাংগাইল জেলা প্রতিনিধি হিসেবে দীর্ঘদিন যাবত দায়িত্ব পালন করে আসছেন। এ ছাড়াও তিনি একাধিক জাতীয় দৈনিক,সাপ্তাহিক,মাসিক পত্রিকায় ঢাকাতে বিশ্ববিদ্যালয প্রতিনিধি,উপজেলা প্রতিনিধি হিসাবে দায়িত্ব পালন করেছেন।ডা.এম.এ.মান্নান সাংবাদিকতা জানার জন্য  বেসিক সাংবাদিকতা কোর্স,এক বছর মেয়াদী সাংবাদিকতার কোর্স অর্জন করেছেন। তিনি চিকিৎসা শাস্ত্রে একজন বাংলাদেশ সরকার কতৃক  রেজিস্টার্ড হোমিও চিকিৎসক এবং ইংরেজী সাহিত্যর উপরে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অর্নাস সহ মার্স্টাস সম্পন্ন করেছেন। বর্তমানে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে আইন বিষয়ে অধ্যায়নরত আছেন। 

নব নির্বাচিত কার্যকরী সদস্য ডা.এম.এ.মান্নান বলেন, আগামীতে দেশের সকল সাংবাদিকদের স্বার্থ রক্ষায় ও তাদের বিপদে আপদে পাশে থাকব। দেশের যে কোন এলাকা থেকে কোন সাংবাদিক সহযোগিতা চাইলে অবশ্যই তাকে সহযোগিতা করব। সংবাদ কর্মীদের অধিকার আদায়ে বাংলাদেশ সাংবাদিক উন্নয়ন সংস্থা কাজ করবে।তিনি আরও বলেন,বাংলাদেশ সাংবাদিক উন্নয়ন সংস্থার মাধ্যমে ইনশাআল্লাহ্ আমরা সকলে মিলে সাংবাদিকদের উন্নয়নে সাথী হব। পরিশেষে বলতে চাই আমাকে বিজেডিও কেন্দ্রীয় পরিষদের সদস্য নির্বাচিত করায় আমি নিজেকে ধন্য মনে করছি কারন আমি এখন সাংবাদিক প্রতিনিধি হিসাবে সংবাদকর্মীদের সার্বিক সহযোগিতা করতে পারবো। যারা আমাকে সদস্য হিসাবে নির্বাচিত করেছেন তাদের প্রতি আমার চির কৃতজ্ঞতা থাকবে। আর নির্বাচিত সকল নেত্ববৃন্দকে জানাই অভিনন্দন ও ফুলেল শুভেচ্ছা। সবাই ভাল থাকবেন। করোনা প্রতিরোধে সচেতন থাকবেন। আমার জন্য সবাই দোয়া করবেন। আল্লাহ হাফেজ।