নেত্রকোনার নবাগত জেলা প্রশাসকের মোহনগঞ্জে মত বিনিময়

নেত্রকোনার নবাগত জেলা প্রশাসকের মোহনগঞ্জে মত বিনিময়




আজহারুল ইসলাম মোহনগঞ্জ প্রতিনিধি নেত্রকোনা


নেত্রকোনার নবাগত জেলা প্রশাসক কাজি মোঃ আব্দুর রহমান মোহনগঞ্জে জনপ্রতিনিধি সাংবাদিক শিক্ষকসহ বিভিন্ন পেশার মানুষের সাথে মত বিনিময় করেন। 

বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলা হল রুমে যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা মোঃ নুরুজ্জামানের সঞ্চালনায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জনাব আরিফুজ্জামানের সভাপতিত্বে এ মতবিনিময় সভা অনুষ্টিত হয়েছে। 

সভায় বিশেষ অতিতি হিসাবে  বক্তব্যগত রাখেন পৌর মেয়র লতিফুর রহমান রতন, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান তাহমিনা আক্তার শান্তা,ওসি মোঃ আব্দুল আহাদ খান প্রমুখ। 

নবাগত জেলা প্রশাসক কাজি মোঃ আব্দুর রহমান বলেন সবাই মিলে মিশে সহনশীলতার সহিত সততার সাথে উন্নয়নের অগ্রযাত্রার কাজ এগিয়ে নিতে হবে। 

এ সময় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মোঃ মোস্তফা কামাল,নেত্রকোনা পল্লী বিদ্যুৎ মোহনগঞ্জ জোনাল অফিসের ডি জি এম বিপ্লব কুমার পাল, মহিলা কলেজে অধ্যক্ষ মুখলেছুর রহমান, জেলা আওয়ামীলীগের উপদেষ্টা মির্জা আঃ গনি,ইউ পি চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান,ইউ পি চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম খান সোহেল, মোহনগঞ্জ  প্রেস ক্লাবের সাধারন সম্পাদক সাংবাদিক মাসুম আহম্মেদ,ও সাংবাদিক কামরুল ইসলাম রতন প্রমুখ।

কয়রায় বৃক্ষরোপন কার্যক্রমের উদ্বোধন

কয়রায়   বৃক্ষরোপন কার্যক্রমের উদ্বোধন



মোহাঃ ফরহাদ হোসেন 

কয়রা(খুলনা)প্রতিনিধিঃ কয়রায় স্বাধীনতার মহান স্থপতি  জাতির  জনক  বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকীতে মুজিববর্ষ উপলক্ষ্যে গ্রীন বেল্ট ফেইজ-২ প্রকল্পের আওতায় খুলনা জেলায় ১৯ লক্ষ ২০ হাজার গাছের চারা রোপানের কর্মসুচীর উদ্বোধন করা হয়েছে। ৩ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার বেলা ১১ টায় ভিডিও কনফারেন্স  এর মাধ্যমে জেলা প্রশাসক মোঃ হেলাল হোসেন এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসাবে এ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন খুলনার বিভাগীয় কমিশনার ড. মুঃ আনোয়ার হোসেন হাওলাদার। এরপর বৃক্ষরোপন কার্যক্রম উদ্বোধন শেষে কয়রা উপজেলা পরিষদ চত্বরে ৩ লক্ষ বিভিন্ন প্রজাতির বৃক্ষ রোপনের লক্ষে গাছের চারা লাগিয়ে কয়রা উপজেলায় এ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব এস এম শফিকুল ইসলাম ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার অনিমেষ বিশ্বাস। এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোঃ নূরে আলম সিদ্দিকী,উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ সুদীপ বালা, উপজেলা কৃষি অফিসার এস এম মিজান মাহমুদ, প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা সাগর হোসেন সৈকত, সুন্দরবন কাশিয়াবাদ স্টেশন কর্মকর্তা আব্দুল্লাহ আল বাহারাম, কয়রা থানার এসআই শারাফাত হোসেন প্রমুখ।

নোবিপ্রবি উপাচার্যকে সপরিবারে হত্যার হুমকি!

নোবিপ্রবি উপাচার্যকে সপরিবারে হত্যার হুমকি!




নোবিপ্রবি প্রতিনিধি 

মোবাইল ফোনে প্রথমে নিজেকে সর্বহারা জলদস্যু প্রধান পরিচয় দিয়ে চাঁদা দাবি অতঃপর চাঁদা দিতে অস্বীকৃতি জানানোয় অকথ্য ভাষায় গালাগালি এবং স্বপরিবারে হত্যার হুমকি। ঘটনাটি ঘটেছে নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের(নোবিপ্রবি) উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. দিদার-উল-আলমের সঙ্গে। এ ঘটনায় নিজের জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে রাজধানীর ধানমণ্ডি মডেল থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি(জিডি) করেছেন উপাচার্য। 


সাধারণ ডায়েরি সূত্রে জানা যায়, গত ১৮ আগস্ট সকাল সাড়ে ১০ টায় অপরিচিত ০১৮২৬৭৫২৬১৪ নাম্বারে উপাচার্যকে কল দিয়ে নিজেকে সর্বহারা জলদস্যু প্রধান মহিউদ্দিন পরিচয় দিয়ে চাঁদা দাবি করেন। পরে উপাচার্য চাঁদা দিতে অপারগতা প্রকাশ করলে তাঁকে অকথ্য ভাষায় গালাগালি করে এবং সপরিবারে হত্যার হুমকি দেয়। জিডিতে প্রাণনাশের হুমকি প্রদানকারী ওই ব্যক্তির বিরুদ্ধে জরুরি ভিত্তিতে  আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য অনুরোধও করেছেন উপাচার্য

নওগাঁ-৬ উপনির্বাচনে শাহীন মনোয়ারা হকের গনসংযোগ

নওগাঁ-৬ উপনির্বাচনে শাহীন মনোয়ারা হকের গনসংযোগ





মোঃ ফিরোজ হোসাইন 

 রাজশাহী ব্যুরো

 নওগাঁ-৬(আত্রাই-রাণীনগর) আসনের উপনির্বাচন উপলক্ষে আ’লীগ হতে মনোনয়ন প্রত্যাশী জেলা আ’লীগ সহ-সভাপতি সাবেক সংরক্ষিত আসনের সাংসদ মহিলা বিষয়ক সম্পাদিকা রাজশাহী নিউ গভ.ডিগ্রি কলেজ ছাত্রলীগ(১৯৭৪-৭৬) শাহীন মনোয়ারা হক।


বৃহস্পতিবার দুপুরে দলীয় নেতা-কর্মী ও ভোটারদের সাথে নিয়ে  আত্রাই উপজেলাধীন আহসানগঞ্জ রেলওয়ে স্টেশন বাজার,ভবানীপুর-মির্জাপুর বাজার এবং বেদগাড়ী বাজারে গনসংযোগ করেন। 


এসময় সংক্ষিপ্ত বক্তৃতায় তিনি বলেন, আগামী ১৭ অক্টোবর উপনির্বাচনে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মনোনীত নৌকা মার্কার প্রার্থীকে ভোট দিয়ে এলাকার শান্তি ও উন্নয়নের ধারা বজায় রাখবেন। 


আমি বিগত সময়ে সাংসদ হিসাবে আপনাদের মাঝে ছিলাম। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আমার উপর আস্থা রেখে নৌকা মার্কা দিলে আপনাদের সকলকে সাথে নিয়ে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়তে নিজেকে উৎস্বর্গ করতে চাই। আপনারা দোয়া করবেন। আমার স্বামী নাই এক ছেলে দেশের বাহিরে থাকে অপরজন দেশে দু’জনেই প্রতিষ্ঠিত। আপনারাই আমার সব। আমি যেন আপনাদের মা-বাবা, ভাই-বোন ও সন্তানের মতো আদর স্নেহ  ভালোবাসায় আবৃত করতে পারি।

নওগাঁয় এক প্রতারক চক্রের সদস্য আটক

নওগাঁয় এক প্রতারক চক্রের সদস্য আটক




মোঃ ফিরোজ হোসাইন 

 রাজশাহী ব্যুরো


নওগাঁয় এক প্রতারক চক্রের সদস্যকে আটক করেছে নওগাঁ সদর মডেল থানা পুলিশ। আটককৃত কার্তিক চন্দ্র মৃধা (৩৭) খুলনা জেলার পাইকগাছা গ্রামের সমেরেশ চন্দ্র মৃধার ছেলে। সে দীর্ঘ দিন থেকে নওগাঁ সদরের পার নওগাঁ সুলতানপুর ভাড়া বাসায় থাকেন।

গত ২৬ আগষ্ট কার্তিক চন্দ্র মৃধা নিখোঁজ হন। নিখোঁজের ঘটনায় তার স্ত্রী পদ্মা রায় নওগাঁ সদর মডেল থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী করেন।


পরিবার ও পুলিশ সূত্রে জানাযায়, কার্তিক চন্দ্র মৃধা মার্কেন্টাইল কো-অপারেটিভ ব্যাংক লিঃ নওগাঁ শাখায় বিনিয়োগ কর্মকর্তা হিসাবে চাকুরী করতেন । গত ২৬ আগষ্ট সকাল সাড়ে ৮টার দিকে কার্তিক বাড়ি থেকে বাজার করার উদ্দেশ্যে বাহির হয় এবং সন্ধ্যা অবধি ফিরে না আসায় ও তাকে বিভিন্ন স্থানে খোঁজাখুজি করে না পেয়ে নওগাঁ সদর মডেল থানায় জিডি করেন তার স্ত্রী পদ্মা রায় ।


জিডির বিষয়টি তদন্তকালে পুলিশ জানতে পারে উক্ত কার্তিক চন্দ্র মৃধা এলাকার পিন্টু প্রামানিক, অনিরুদ্ধ ঘোষ সহ বিভিন্ন লোকের কাছ থেকে টাকা ধার করেছে এবং ধারের টাকার পরিশোধ না করার কৌশল হিসাবে ও তাদেরকে ভয় দেখানোর উদ্দেশ্যে সে নিজে নিজে আত্মগোপন করেছে।


এ বিষয়ে নওগাঁ সদর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ সোহরাওয়ার্দী হোসেন বলেন, পুলিশ সুপার প্রকৌশলী আবদুল মান্নান মিয়া বিপিএম স্যারের নির্দেশনায় তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার করে তার অবস্থান চিহ্নিত করে নওগাঁ সদর মডেল থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) ফয়সাল বিন আহসান, এসআই মোঃ হানিফ উদ্দিন মন্ডল, এএসআই মোঃ আলহাজ আলী ও খুলনা জেলার কয়রা থানা পুলিশের সহায়তায় বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে কার্তিক চন্দ্র মৃধাকে খুলনা জেলার কয়রা থানাধীন মহেশ্বরীপুর এলাকা থেকে উদ্ধার করা হয়।

পরবর্তীতে পিন্টু প্রামানিক এর লিখিত অভিযোগের প্রেক্ষিতে নওগাঁ সদর মডেল থানার মামলা রুজ করে বুধবার বিকালে আসামী কার্তিক চন্দ্র মৃধাকে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়।

পটিয়া পৌর ১ নম্বর ওয়ার্ড বিভিন্ন উন্নয়ন কাজ পরিদর্শন করছেন মেয়র অধ্যাপক হারুন

 পটিয়া পৌর ১ নম্বর ওয়ার্ড বিভিন্ন উন্নয়ন কাজ পরিদর্শন করছেন মেয়র  অধ্যাপক হারুন




পটিয়া প্রতিনিধিঃ- ৩ সেপ্টেম্বর সকালে  পটিয়া পৌরসভা ১নম্বর ওয়ার্ডে সাবেক কাউন্সিলর সফিউল মান্নান ভুলুর বাড়ির রাস্তার অসমাপ্ত  কাজের 


অগ্রগতি পরিদর্শন করেন পটিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক পটিয়া পৌরসভার মেয়র অধ্যাপক হারুন রশিদ ও ১ নম্বর ওয়ার্ড   


কাউন্সিলর  মোঃ আবদুল খালেক। এ রাস্তা আর সি সি ধারায় সমাপ্ত করেন।  এ সময়   উপস্থিত ছিলেন এলাকার গণ্য মান্য ব্যক্তিরা। পৌর মেয়র উন্নয়নের ধারা অব্যহত রাখতে সকলকে সচেতন থাকার আহবান জানান। পটিয়া পৌরসভার ১ নম্বর ওয়ার্ড      কাউন্সিলর আবদুল খালেক  বলেন সকলের কাছে  সাবেক  এই ওয়ার্ডে  কাউন্সিলর সফিউল মান্নান ভুলুর আশু   রোগ মুক্তি কামনায়  সবার কাছে দোয়া চান এবং আল্লাহ শফিউল মান্নান ভুলুর সুস্থতা কামনা করেন।      

পটিয়ার দক্ষিণ ভুর্ষি নয়াবাড়ি শোহাদায়ে কারবালা মাহফিলে চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সেলিম

 পটিয়ার  দক্ষিণ ভুর্ষি নয়াবাড়ি শোহাদায়ে কারবালা মাহফিলে চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সেলিম

           



সেলিম চৌধুরী পটিয়া প্রতিনিধিঃ চট্টগ্রামর  পটিয়া উপজেলার দক্ষিণ ভুর্ষি ইউনিয়নে নয়া বাড়ি মসজিদ পরিচালনা কমিটি ও গাউছিয়া কমিটি য়ৌথ উদ্যােগে ২ সেপ্টেম্বর রাতে শোহাদায়ে কারবালা মাহফিল মসজিদ   মাদ্রাসা মাঠে অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন পটিয়া উপজেলা আওয়ামীগের  সিনিয়র সহসভাপতি ও পটিয়া   চেয়ারম্যান সমিতির সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ সেলিম। প্রধান বক্তা ছিলেন  বিশিষ্ট মিডিয়া ব্যাক্তিত্ব গাজী মাওলানা মাহবুল হক (নুরে বাংলা) বিশেষ অতিথি ছিলেন আল্লামা মুফতি মোকারম বারী (মা.জি.আ),  বিশেষ বক্তা ছিলেন নয়াবাড়ি মসজিদ ইমাম গিয়াস উদ্দিন তাহেরী। বক্তব্য রাখেন পটিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগ নেতা বিশিষ্ট ব্যাবসায়ি মঞ্জুরুল আলম, মোঃ দোহা, সাজ্জাদ হোসেন  সুমন, মেম্বার আহমদ নুর সাগর, মেম্বার মাহবুল আলম,  যুবলীগ নেতা মোরশেদুল হক। মসজিদ কমিটির     সভাপতি মোহাম্মদ রবিউল হাসান (রবি) সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ গোলাম কিবরিয়া টিপুর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত হয় 



শোহাদায়ে কারবালা মাহফিলে    বক্তব্য রাখেন শাহরিয়ার শাহরু, আকবর হোসেন,আবদুল মন্নান, তারেক আজিজ, মোঃ হাসানুৃজ্জমান ফয়সাল, সাকিব, সিহাব,রাসেল,আবু তালেব আজাদ,জামাল উদ্দীন, নজরুল ইসলাম, নুরুল ইসলাম, সাদ্দাম হোসেন , মাদ্রাসার প্রতিষ্টাতা সভাপতি গোলাম কিবরিয়া টিপু প্রমুখ।প্রধান অতিথি চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সেলিম বলেন এই মসজিদ নির্মাণের ফলে অত্র এলাকাবাসির অনেকদিনের আশা পূর্ন হলো। এই মসজিদ নির্মানে যারা শ্রম ও সহযোগিতা করেছেন তাদের  পরবর্তী প্রজন্ম কৃতজ্ঞ থাকবেন এবং আল্লাহ রাসুল (সঃ) পথ অনুসরণ করে চলার জন্য আহবান জানান। তিনি মাদ্রাসার শিক্ষার্থীদের মাঝে মগদ টাকা প্রদান চাড়াও মেধাবী শিক্ষার্থীদের ক্রেস্ট প্রদান করেন এবং মসজিদের উন্নয়ন কাজ বেগবান করতে দক্ষিণ ভুর্ষি ইউনিয়ন পরিষদের পক্ষ থেকে সরকারি অনুদান দেওয়ার ঘোষণা দেন। এছাড়াও৷ মঞ্জুরুল ইসলাম ২০ হাজার, মোঃ দোহা ১০ হাজার, সাজ্জাদ সুমন ১০ হাজার টাকা অনুদান দেওয়ার ঘোষণা দেন। রাত দেড়টায় আখেরী মোনাজাত করেন   মাওলানা মাহবুল বাংলা। সব শেষে তবররুক বিতরণ করা হয়।    

মাধবপুর পৌর নির্বাচনে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী সাব্বির হাসান

মাধবপুর পৌর নির্বাচনে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী সাব্বির হাসান


Add caption


লিটন পাঠান, হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি 


হবিগঞ্জের মাধবপুরসহ হবিগঞ্জ জেলার ৫টি পৌরসভায় ডিসেম্বরে পৌর নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী হিসেবে মেয়র পদে প্রার্থীর দৌঁড়ে রয়েছেন অনেকেই। দীর্ঘদিন ধরে তারা এলাকায় নানাভাবে গণসংযোগ, কুশল বিনিময়ও করছেন বর্তমানে বেশির ভাগ প্রার্থী মেয়র পদে দলীয় টিকেট পেতে তৃণমূল থেকে দলের হাইকমান্ডের কাছে ধরনা দিচ্ছেন। বলতে গেলে এসব প্রার্থীরা মনোনয়নের জন্য এখন নির্ঘুম রাত কাটাচ্ছেন অনেকে আওয়ামী লীগের সিনিয়র নেতাদের।


অনুকম্পা পেতে কয়েকদিন ধরে রাজধানী ঢাকা অবস্থান করছেন ।মনোনয়ন দৌড়ে এগিয়ে থাকার কথা জানিয়েছেন মাধবপুর প্রেসক্লাবের সাধারন সম্পাদক ও পৌর আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সাব্বির হাসান। পৌরসভার শিবপুর গ্রামের ঐতিহ্যবাহী মাষ্টার বাড়ীর মরহুম হাজী আলী আহম্মদের কনিষ্ঠ সন্তান সাব্বির হাসান।তিনি মাধবপুর পৌর ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ( ভারপ্রাপ্ত) পৌর যুবলীগের সাবেক সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন।


তিনি এলাকার বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের সাথে সম্পৃক্ত হয়ে এলাকার অসহায় মানুষের জন্য কাজ করে যাচ্ছেন। আওয়ামী লীগের তৃনমুলের নেতাকর্মী ও সাধারণ ভোটারদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, মাধবপুর পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী হিসেবে প্রার্থী সংখ্যা বাড়লেও সব প্রার্থী কিন্তু সমানভাবে জনপ্রিয়তা অর্জন করতে পারেনি ভোটের মাঠে। 


সাংগঠনিক দক্ষতা ও ব্যক্তিগত ইমেজের কারণে হাতে গোনা মাত্র কয়েকজন প্রার্থী ভোটের মাঠে জনপ্রিয়তায় রয়েছেন। এসব প্রার্থীদের মধ্যে বেশ সুবিধাজনক অবস্থানে রয়েছেন পৌর আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও প্রেসক্লাবের সেক্রেটারি সাব্বির হাসান আওয়ামীলীগের মনোনয়ন পেলে বেশির ভাগ ভোট পাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে তার


মূলত আঞ্চলিকতার ইস্যুতে সে জনপ্রিয় ও শক্তিশালী প্রার্থী। এছাড়া তৃণমূলে সাধারণ ভোটার ও দলীয় নেতাকর্মীদের মাঝেও সমান জনপ্রিয়তা তার। বাকিরাও যে যার মতো ভাল অবস্থানে রয়েছেন বলে দাবি করেছেন তাদের সমর্থকরা। সাব্বির হাসান জানান,বিগত ৩টি নির্বাচনী মৌসুম থেকে আমি নির্বাচন করার জন্য পৌরবাসীর সমর্থন ও দলীয় 


হাই কমান্ডের নির্দেশে এলাকায় কাজ করছি। বিগত সময়গুলোতে যারা দলীয় মনোনয়ন নিয়ে মাঠে এসেছেন জননেত্রীর শেখ হাসিনার প্রার্থী মনে করে তাদের সাথে কাজ করেছি আমার বিশ্বাস  নেত্রী এবার আমার মূল্যায়ন করবেন।

মাধবপুরে ছাদ থেকে পড়ে শ্রমিকের মৃত্যু ও ট্রেনে কাটা পড়ে যুবকের মৃত্যু

 মাধবপুরে ছাদ থেকে পড়ে শ্রমিকের মৃত্যু ও ট্রেনে কাটা পড়ে যুবকের মৃত্যু




লিটন পাঠান, হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধিঃহবিগঞ্জের মাধবপুরে একটি কোম্পানির নির্মাণাধীন ভবন থেকে পড়ে মনির হোসেন (৫০) নামে এক শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৮ টায় এ ঘটনা ঘটে। মনির হেসেন উপজেলার ছাতিয়াইন ইউনিয়নের সাকুসাইল গ্রামের মৃত মোবারক মিয়ার ছেলে, প্রত্যক্ষদর্শী আবুল কাশেম জানান উপজেলার হরিতলা এলাকার নির্মিত।


বাদশা কোম্পানির নির্মানাধীন একটি কোয়াটার রাজমিস্ত্রীর সহকারী হিসাবে কাজ করত মনির হোসেন। বৃহস্পতিবার সকালে কাজ করতে গিয়ে অসাবধানতা বশত ভবন থেকে মাটিতে পড়ে।

এ সময় অন্যান্য শ্রমিকরা দ্রুত মাধবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষনা করেন। মাধবপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ ইকবাল হোসেন সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।


হবিগঞ্জের মাধবপুরে ট্রেনে কাটা পড়ে অজ্ঞাতনামা এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার সকালে আখাউড়া-সিলেট রেল ষ্টেশনের নোয়াপাড়া রেল ষ্টেশনে অর্ধ কিলোমিটার উত্তর দিকে এ ঘটনা ঘটে। এর সত্যতা নিশ্চিত করে শায়েস্তগঞ্জ রেল ফাঁড়ির ইনচার্জ এস আই হুমায়ূন কবির জানান, উলেখিত স্থানে যুবকের ক্ষত বিক্ষত মরদেহ স্থানীয় লোকজন। 


পড়ে থাকতে দেখে পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য হবিগঞ্জ আধুনিক সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করেছে। ধারণা করা হচ্ছে সিলেট থেকে ছেড়ে আসা ঢাকাগামী আন্তঃনগর কালনী ট্রেনের নিচে কাটা পড়ে তার মৃত্যু হয়েছে। তার নাম ও পরিচয় জানতে পুলিশ বিভিন্ন স্থানে বার্তা প্রেরণ করেছে।

মোংলায় জেজেএসএর দুইদিন ব্যাপী পুষ্টি বিষয়ক মৌলিক প্রশিক্ষণের সমাপনী

মোংলায় জেজেএসএর দুইদিন ব্যাপী পুষ্টি বিষয়ক মৌলিক প্রশিক্ষণের সমাপনী




মোংলা  প্রতিনিধিঃপুষ্টি  উন্নয়নে অংশগ্রহণমূলক সমন্বিত প্রকল্পের আওতায় বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা জেজেএসএর আয়োজনে ৩ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার বিকেলে মোংলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স মিলনায়তনে গ্রাম ডাক্তার ও ফার্মাসিস্টদের অংশগ্রহণে দুইদিন ব্যাপী পুষ্টি বিষয়ক মৌলিক প্রশিক্ষণএর সমাপনী অনুষ্ঠান হয়।


বৃহস্পতিবার বিকেল ৩টায় প্রশিক্ষণএর সমাপনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন জেজেএস উপজেলা সমন্বয়কারি তরুন বড়ুয়া। সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ জীবিতেষ বিশ্বাস। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন সাবেক উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান সাংবাদিক মোঃ নূর আলম শেখ। এছাড়া বক্তব্য রাখেন দাতা সংস্থা কনসার্ন ওয়ার্ল্ডওয়াইডএর এ্যাডভোকেসি স্পেশালিস্ট রুমানা শারমীন, জেজেএসথর পুষ্টি বিশেষজ্ঞ মৌতিথি আইচ, মাওলানা শামসুল হক প্রমূখ। দুইদিন ব্যাপী প্রশিক্ষণে বাংলাদেশের  সার্বিক পুষ্টি পরিস্থিতি , খাদ্য পুষ্টি ও বৈচিত্রময় খাবার গর্ভবতী  এবং প্রসূতি নারীর যত্ন ও পুষ্টি বার্ধ্যকে পুষ্টি চাহিদা ও গুরুত্ব পুষ্টি  উন্নয়নে গ্রাম্য ডাক্তারদের দায়িত্ব ও কর্তব্য প্রভৃতি বিষয়ে আলোচনা হয়। প্রশিক্ষণে ২১জন গ্রাম্য ডাক্তার ও ফার্মাসিস্ট অংশগ্রহণ করেন। সমাপনী অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণকারীদের মাঝে সনদ বিতরণ করা হয়। এছাড়া অনুষ্ঠানে বিশ্ব মাতৃদুগ্ধ সপ্তাহ উপলক্ষে রচনা প্রতিযোগিতায় বিজয়ী শিক্ষার্থীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়। এসময় অন্যান্যদের মাঝে উপস্থিত ছিলেন সরকারি টি এ ফারুক স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ মোঃ আবু সাইদ খান, মোংলা সরকারি কলেজের বাংলা বিভাগের প্রভাষক মনোজ কান্তি বিশ্বাস প্রমূখ।

আশাশুনির মাড়িয়ালা টু কোলা রিংবাঁধ পরিদর্শন করেন উপজেলা চেয়ারম্যান

আশাশুনির মাড়িয়ালা টু কোলা রিংবাঁধ পরিদর্শন করেন উপজেলা চেয়ারম্যান




  


আহসান উল্লাহ বাবলু উপজেলা প্রতিনিধিঃ আশাশুনি উপজেলার শ্রীউলা ইউনিয়নের মাড়িয়ালা টু কোলা রিং বাঁধের কাজ পরিদর্শন করেন উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এবিএম মোস্তাকিম।  


রিং বাঁধের কাজ পরিদর্শনকালে এ বি এম মোস্তাকিম বলেন- বিভাগীয় কমিশনার, জেলা প্রশাসক, পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলীর সাথে কথা হয়েছে। আমরা অতি দ্রুত সময়ের মধ্যে রিং বাঁধের কাজ শেষ করব।এই রিং বাধ দেওয়ার ফলে শ্রীউলা ইউনিয়নের হাজরাখালী, কলিমাখালী (আংশিক), মাড়িয়ালা (আংশিক) ও প্রতাপনগর ইউনিয়নের কোলা ও হিজলিয়ার একটি অংশ বাইরে থাকবে। অপরদিকে এই বাঁধটি সম্পন্ন হলে শ্রীউলার প্রায় ২০টি এবং আশাশুনি সদর ইউনিয়নের ১৪ গ্রামে জোয়ারের পানি ওঠা-নামা বন্ধ হয়ে জনভোগান্তি কমবে। আর যারা রিং বাঁধ এর বাহিরে পানিবন্দি হয়ে থাকবে তাদেরকে সরকারি সহযোগিতার মাধ্যমে সাময়িকভাবে আবাসন ব্যবস্থা করে দেওয়া হবে। বৃহত্তর স্বার্থে আমাদের সবাইকে ত্যাগ স্বীকার করে এগিয়ে আসতে হবে এবং কাজে সহযোগিতা করতে হবে। তাহলে এই এলাকা রক্ষা করা সম্ভব হবে।


তিনি আরও বলেন, রিং বাঁধকে  কেন্দ্র করে জনগণের জীবন জীবিকা নিয়ে কেউ অপরাজনীতি করবেন না। আমি সবসময় আপনাদের পাশে আছি।তিনি উপজেলা পরিষদের পক্ষ থেকে আর্থিক সহায়তার ঘোষণা দেন। তিনি রিং বাঁধের কাজে সহযোগিতার জন্য সকলকে অনুরোধ জানান।


এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মীর আলিফ রেজা,শ্রীউলা ইউপি চেয়ারম্যান আবু হেনা সাকিল, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুস সামাদ বাচ্চু, উপজেলা কৃষক লীগের সভাপতি স ম সেলিম রেজা সেলিম, ইউপি সদস্যবৃন্দ ও স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

ঝিকরগাছায় প্রণোদনা কর্মসূচির আওতায়বীজ ও সার বিতরণ

ঝিকরগাছায় প্রণোদনা কর্মসূচির আওতায়বীজ ও সার বিতরণ




মোঃ ইকরামুল করিম সৈকত, ঝিকরগাছা (যশোর) প্রতিনিধিঃঝিকরগাছা কৃষি অফিস কর্তৃক আয়োজিত খরিপ -২/২০২০-২০২১ মৌসুমে মাসকলাই আবাধ ও উৎপাদন বৃদ্ধির লক্ষ্যে প্রণোদনা কর্মসূচির আওতায় বিজ ও সার বিতরণ করা হয়। 


উপজেলা কৃষি অফিসারের কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত উক্ত অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন ঝিকরগাছা উপজেলা নির্বাহি অফিসার আরাফাত রহমান। 


অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন ঝিকরগাছা উপজেলা পরিষদের সুযোগ্য চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সংগ্রামী যুগ্মসাধারণ সম্পাদক জননেতা জনাব মনিরুল ইসলাম।


বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন ঝিকরগাছা উপজেলা পরিষদের সুযোগ্য ভাইস চেয়ারম্যান জননেতা জনাব মোঃ সেলিম রেজা।


স্বাগত বক্তব্য রাখেন ঝিকরগাছা উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ মোঃ মাসুদ হোসেন পলাশ।

হাসিনুরের হত্যাকারী ও পরিকল্পনাকারীদের মুখোশ উন্মেচন করে আইনের আওতায় আনা হবে -বাদশা এমপি

 হাসিনুরের হত্যাকারী ও পরিকল্পনাকারীদের মুখোশ উন্মেচন করে আইনের আওতায় আনা  হবে -বাদশা এমপি


কুষ্টিয়া জেলা প্রতিনিধি,মোঃ চঞ্চল হোসাইন:কুষ্টিয়া-১ দৌলতপুর আসনের সংসদ সদস্য এ্যাড. সরওয়ার জাহান বাদশাহ্ তার ফুপাতো ভাই হাসিনুর রহমান হত্যাকান্ডের শোক সভায় খুনের মদদদাতা ও পরিকল্পনাকারীদের মুখোশ উন্মোচন করে তাদের আইনের আওতায় আনার দাবি জানিয়েছেন।


তিনি বলেছেন, এই হত্যাকান্ড কোন সাধারণ হত্যাকান্ড নয়। এই হত্যাকান্ডের পরপরই অপপ্রচার চালানো হয়েছে মাছওয়ালা মজিবর রহমানের প্রতিশোধ নিতে এ হত্যাকান্ড। কিন্তু এটা অপপ্রচার, মিথ্যা ও উদ্দেশ্যমূলক। এটা একটি রাজনৈতিক হত্যাকান্ড। এর পেছনের ষড়যন্ত্রকারী ও পরিকল্পনাকারী রয়েছে।


তিনি বলেন, আমাকে ও আমার পরিবারকে বিতর্কিত করার জন্য সুপরিকল্পিতভাবে এ হত্যাকান্ড ঘটানো হয়েছে। পেছন থেকে শক্তি যুগিয়ে পরিকল্পনা করে সুপরিকল্পিতভাবে নৃশংস এ হত্যাকান্ড ঘটানো হয়েছে যা কখনও মেনে নেওয়া যাবে না।


তিনি হাসিনুর রহমান হত্যার মদদদাতা ও রাজনৈতিক পরিকল্পনাকারীদের চিহ্নিত করে তাদের আইনের আওতায় আনার দাবি জানান।


দৌলতপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের আয়োজনে আজ বৃহস্পতিবার ৩ সেপ্টেম্বর বেলা ১১টায় দৌলতপুর উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে এ শোক সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এমপি বাদশাহ্ এসব কথা বলেন।


দৌলতপুর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মঈন উদ্দিন মোহনের সভাপতিত্বে শোক সভায় বক্তব্য রাখেন, ভেড়ামারা আওয়ামী লীগের সভাপতি উপজেলা চেয়ারম্যান আক্তারুজ্জামান মিঠু, মিরপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক উপজেলা চেয়ারম্যান কামারুল আরেফিন, দৌলতপুর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান সাক্কির আহমেদ, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সোনালী খাতুন আলেয়া, দৌলতপুর কলেজের অধ্যক্ষ মো. ছাদিকুজ্জামান খান সুমন, মুক্তিযোদ্ধা হায়দার আলী, দৌলতপুর কলেজের বাংলা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক সরকার আমিরুল ইসলাম, দৌলতপুর স্বেচ্ছাসেবক লীগের আহবায়ক ইউপি চেয়ারম্যান শাহ আলমগীর, সাবেক ছাত্রলীগের সভাপতি সরদার আতিয়ার রহমান আতিক, দৌলতপুর যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কাদের, ওরুশ কবিরাজ, যুবলীগ নেতা ওয়াসিম কবিরাজসহ অওয়ামী লীগ দলীয় নেতৃবৃন্দ ও এলাকার সুধীজন।


উল্লেখ্য, ২৯ আগষ্ট শনিবার সকাল সাড়ে ৭টার দিকে নিজ বাড়ির পার্শ্ববতী ফিলিপনগর ইউনিয়নের ইসলামপুর ঘোষপাড়া মোড়ে পদ্মা নদীর ধারে হাসিনুর রহমান মাছ ক্রয় করতে গেলে মজিবর রহমান পেছন দিক থেকে অতর্কিত হামলা চালিয়ে হাসিনুর রহমানকে ধারাল হাসুয়া দিয়ে এলোপাতাড়ি ভাবে কুপায়।


এসময় হাসিনুর রহমান মাটিতে লুটিয়ে পড়লে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে দৌলতপুর হাসপাতালে নিলে সেখানে তিনি মারা যায়। খবর পেয়ে দৌলতপুর থানা পুলিশ ইসলাম ঘোষপাড়ায় অভিযান চালিয়ে নিজ বাড়ি থেকে ঘাতক মজিবর রহমানকে আটক করেছে। সে ইসলামপুর ঘোষপাড়া এলাকার মৃত মতালি মিস্ত্রির ছেলে।


হত্যার এ ঘটনায় শনিবার রাতে নিহত হাসিনুর রহমানের মামাতো ভাই আব্দুল জব্বার ওরফে জব্বার পুলিশ বাদী হয়ে আটক মজিবর রহমান ও তার ছেলে জাহাঙ্গীরসহ সহ অজ্ঞাত আরও ৪-৫ জনকে আসামী করে দৌলতপুর থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন। হত্যার ঘটনায় প্রধান আসামী মজিবর রহমান আটক হলেও অন্য আসামীরা পলাতক রয়েছে।

নাটোর বনপাড়ায় আল-আমীন কে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন

নাটোর বনপাড়ায় আল-আমীন কে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন

রাজশাহী ব্যুরো

নাটোরের বড়াইগ্রামে মোবাইল ফোনে ডেকে নিয়ে আল আমিন হক বাবু নামে এক যুবককে মধ্যযুগীয় কায়দায় হাত পা বেধে নির্যাতন করায় বর্তমানে সে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে দুইটি কিডনিতে আঘাত প্রাপ্ত হয়ে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে। এদিকে এ ঘটনায় মামলা হওয়ার পর দুজন আসামী আটক হলেও তারা জামিনে এসে ও অন্যান্য আসামীরা আটক না হওয়ায় প্রকাশ্যে ওই যুবকের পরিবারকে নানা ধরনের হুমকি প্রদান করছে। ফলে জীবনের  নিরাপত্তা ও দোষীদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় এনে সুষ্ঠু বিচারের দাবীতে সংবাদ সম্মেলন করেছে ওই যুবকের পরিবার। 

বৃহস্পতিবার দুপুরে নাটোরের একটি মিডিয়া হাউজে সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন আহত আল আমিন হক বাবুর চাচা বীর মুক্তিযোদ্ধা মুমিনুল হক। এ সময় উপস্থিত ছিলেন বাবুর দুলা ভাই নজরুল ইসলাম , পৌর কাউন্সিলর শরীফুন্নেসা শিরীন ও চাচা সাইফুল ইসলাম। 

এ সময় লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন , বনপাড়া পৌর এলাকার রশিদ ডিলারের মোড়ের আব্দুল আজিজের মেয়ে তাসলিমা খাতুন এর সাথে তার ভাতিজার বিবাহ বিচ্ছেদের পর থেকেই ওই মেয়ে তার পরিবার প্রতিশোধ প্রবণ হয়ে নানা ভাবে বিভিন্ন কৌশলে বাবুর বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করতে থাকে। এর পর্যায়ে গত ২৬ আগষ্ট বাবুকে কৌশলে বাড়িতে ডেকে নিয়ে মেয়ের মা সহ পরিবারের লোকজন হাত পা বেধে মধ্যযুগীয় কায়দায় ২ ঘন্টা শারিরিক ও মানসিক নিযার্তন করে। পরে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের সহায়তায় তাকে উদ্ধার করে প্রথমে স্থানীয় আমেনা হাসপাতাল ও পরে রামেকে ভর্তি করা হয়। বর্তমানে তার দুইটি কিডনি নষ্টের পথে সেখানে সে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে। তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় স্থানান্তরের পরামর্শ দিয়েছেন চিকিৎসকরা। এ ঘটনায় মামলার পর পুলিশ মেয়ে ও তার মাকে আটক করলেও তারা জামিন পেয়েছে। অজ্ঞাত কারণে অন্য আসামীদের আটক না করায় তারা বিভিন্ন ধরনের হুমকি দিয়ে আসছে। 

বর্তমানে বাবুর চিকিৎসা যেমন হুমকিতে পড়েছে তেমনি জীবনের নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে তার পরিবার। 

তাই অবিলম্বে আসামীদের গ্রেফতার করে বিচারের আওতায় আনার দাবী করেন তিনি।

মহেশপুর থেকে পরিতাক্ত অবস্থায় ২টি পাইপগান উদ্ধার

 মহেশপুর থেকে পরিতাক্ত অবস্থায় ২টি পাইপগান উদ্ধার



খোন্দকার আব্দুল্লাহ বাশার। 

খুলনা ব্যুরো প্রধান:ঝিনাইদহের মহেশপুর থেকে ২টি পাইপগান উদ্ধার করেছে পুলিশ। বুধবার গভীর রাতে উপজেলার নওদাগ্রাম থেকে পরিত্যাক্ত অবস্থায় দেশীয় তৈরী পাইপগান ২টি উদ্ধার করা হয়।

জানা যায়, মহেশপুর থানার এএসআই সজল মন্ডল গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে গভীর রাতে নওদাগ্রামের পাকা রাস্তার ধারে অভিযান চালায়। এসময় বস্তাবন্দি অবস্থায় দেশীয় তৈরী ২টি দীর্ঘদিনের পুরাতন পাইপগান উদ্ধার করে।

মহেশপুর থানার অফিসার ইনচার্জ সাইফুল ইসলাম জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে নওদাগ্রাম থেকে পরিত্যাক্ত অবস্থায় ২টি পাইপগান উদ্ধার করা হয়েছে। দেশীয় তৈরী পাইপগান ২টি দীর্ঘদিনের পুরাতন বলে তিনি জানান। তবে কে বা কারা রাস্তার ধারে কি উদ্দেশ্যে পাইপগান ২টি  লুকিয়ে রেখেছিলো তা খতিয়ে দেখা হবে।

রৌমারী'তে পানিতে ডুবে ৩ শিশুর মৃত্যু

রৌমারী'তে পানিতে ডুবে ৩ শিশুর মৃত্যু




মোঃইয়ামিন সরকার আকাশ।

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধিঃ

নানাবাড়িতে এসে গোসল করতে গিয়ে সাঁতার না জানায় পানিতে ডুবে দীনা খাতুন (১২), সিয়াম (১৩) ও মোহাম্মদ হামিম (১৫) নামের তিন খালাতো ভাই বোনের মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে ও দুইজনকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে। ঘটনাটি ৩ সেপ্টেম্বর (বৃহস্পতিবার) ১টার দিকে কুড়িগ্রামের রৌমারী উপজেলার বন্দবেড় ইউনিয়নে কজেলপাড়া এলাকায়। এ ঘটনায় এলাকায় শোকের ছাঁয়া নেমে আসে। 


 মৃত্যু তিন শিশুর মামা জোবায়ের জানান, আমার ভাগ্নি দীনা ও ভাগ্নে হামিম কয়েকদিন আগে রৌমারী কলেজ পাড়ায় অপর এক দুলাভাই সহকারি অধ্যাপক হায়দার আলীর বাড়িতে বেড়াতে আসে। ঘটনার দিন ৪ ভাইবোন ও মামাসহ ৫জন মিলে দুপুরের দিকে বাড়ির পাশে ¯স্লুইজগেট সংলগ্ন সোনাভরি নদীতে গোসল করতে যায়।


 এসময় দীনা পানিতে ডুবে যায়। তাকে উদ্ধার করার জন্য পরপর ভাইবোনেরা গেলে তারও পানিতে ডুবে। এমতাবস্থায় তাদের বড়বোন তাকিয়ার চিৎকারে স্থানীয় হেলাল, আবির উদ্দিন, জসিম ও নয়ন এগিয়ে এসে ৫ জনকে উদ্ধার করে রৌমারী হাসপাতালে নিয়ে আসে। এসময় কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. নাজমুল আলম তিন জনকে মৃত্যু ঘোষনা করেন। তারা হলেন ঢাকা জেলার ওলি উল্লাহর মেয়ে পঞ্চম শ্রেণীর ছাত্রী দীনা পারভীন, উপজেলার কাউয়ারচর গ্রামের আব্দুল কাদেরের ছেলে নবম শ্রেণীর ছাত্র হামিম ও কলেজপাড়া গ্রামের রৌমারী ডিগ্রি কলেজের সহকারি অধ্যাপক জনাব হায়দার আলীর ছেলে অষ্টম শ্রেণীর ছাত্র সিয়াম।   


 খবর পেয়ে রৌমারী থানার অফিসার ইনচার্জ হাসান ইনাম ঘটনাস্থল পরিদর্শন শেষে হাসপাতালে আসেন এবং মৃত্যু ব্যক্তির স্বজনদেরকে শান্তনা দেন।

মাধবপুরে শীতকালীন সবজি চাষে ব্যস্ত সময় পার করছেন চাষিরা

মাধবপুরে শীতকালীন সবজি চাষে ব্যস্ত সময় পার করছেন চাষিরা




লিটন পাঠান, হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি


হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলার ১১ টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভায় মাঠ পর্যায়ে চলছে আগাম শীতকালীন সবজি চাষ। মহামারী করোনার মহা বিপর্যয়ের মধ্যে এবার উপজেলার লম্বা সময়ের স্থানীয় বন্যায় এখন পর্যন্ত প্রায় ৩ লাখ মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন বলে সরকারি হিসাবেই বলা হচ্ছে। বন্যা দুর্গত বিভিন্ন এলাকা থেকে ক্ষতিগ্রস্ত অনেকে বলেছেন, করোনাভাইরাসের প্রকোপের মাঝে বন্যায় তারা চরম অসহায় অবস্থায় আছেন। এই বৈরী আবহাওয়ার মধ্যেই জমি চাষ করে লাউ, করলা, বেগুন, কায়তাসহ বিভিন্ন শীতকালীন আগাম সবজি চাষে ব্যস্ত সময় পার করছেন মাধবপুরের সবজি চাষিরা।


জমি চাষাবাদ শেষ হতে না হতেই শুরু হয় আবার ঝড়-বৃষ্টি। ফলে প্রাকৃতিক দুর্যোগ ও ঝড়-বৃষ্টির কারণে আগাম সবজি চাষে অনেক বেশী খরচ হচ্ছে। এরই মধ্যে কৃষকরা সবজি লাগানোর জন্য একের পর এক জমি চাষ করে যাচ্ছেন। একটু খড়া হলেই শুরু হয় জমি চাষের প্রক্রিয়া। বৈরী আবহাওয়ার সঙ্গে যুদ্ধ করে এভাবেই সবজি চাষ করার জন্য জমিকে উপযোগী করে তৈরি করছেন চাষিরা। তবে আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে এক মাসের মধ্যেই ক্ষেত থেকে উঠবে আগাম শীতকালীন শাকসবজি। বেশি লাভ ও বাম্পার ফলন হবে এমনটাই প্রত্যাশা চাষি ও কৃষি বিভাগের।


বৈরী আবহাওয়া ও টানা বৃষ্টির কারণে এবারের সবজি চাষাবাদ করতে খরচ বেশি হচ্ছে বলে জানান সবজি চাষিরা। মাধবপুর উপজেলার পূর্ব মাধবপুর গ্রামের সবজি চাষি খোকন মিয়া জানান, এবারের ঝড়-বৃষ্টি বেশি হওয়ার কারণে জমিতে বেশি হাল চাষ করতে হচ্ছে। একটু খরা হলে শুরু হয় চাষাবাদ।

আবার কিছুক্ষণ পরেই শুরু হয়ে যায় বৃষ্টি। আবার খরা হলে নতুন করে চাষ করতে হয়। এভাবেই প্রাকৃতিক দুর্যোগের সঙ্গে যুদ্ধ করে তৈরি করতে হচ্ছে সবজি চাষের জমি দুর্যোগ যখন আসে চতুর্দিক থেকেই আসে। একদিকে মহামারি করোনা ভাইরাস অপরদিকে প্রাকৃতিক দুর্যোগের কারণে আগাম সবজি চাষ করতে পারছিনা আমরা।


মহামারি করোনা ভাইরাস থেকে জীবনকে বাঁচাতে যেভাবে যুদ্ধ করতে হচ্ছে আমাদের। ঠিক সেভাবেই আগাম সবজি চাষ করার জন্য প্রাকৃতিক দুর্যোগ ও ঝড়-বৃষ্টি সঙ্গে যুদ্ধ করতে হ”েছ। করোনার কারণে অনেক জেলার বেকার যুবকরা চাকরির দিকে না ঝুঁকে নেমে পড়েছেন সবজি চাষে। আবহাওয়া ভালো থাক আর না থাক তারপরও আগাম সবজি চাষ করতে পিছপা হননি সবজি চাষিরা। বর্তমানে বাজারে কম পাওয়া গেলেও মাসখানেকের মধ্যে সবজিতে ভরপুর হবে মাধবপুর উপজেলার বিভিন্ন অঞ্চলের বাজারগুলো। দাম কিছুটা বেশি হলেও ভোক্তারা স্বাদ নেবেন শীতকালীন আগাম শাকসবজির।


তাই নাওয়া খাওয়া ভুলে দিনরাত সবজি খেতে বাঁশ কেটে মাচা দিতে ব্যস্ত সময় পার করছেন চাষিরা। উপজেলার বারাচান্দুরা গ্রামের সবজি চাষি ওয়াহাব মিয়া বলেন, ঝড় বৃষ্টির কারণে অনেকে সবজি চাষাবাদ কমিয়ে দিয়েছেন। গতবারে যে চাষি ১০ বিঘা সবজি চাষ করেছিলেন এবারে তা কমে এসেছে ছয় থেকে সাত বিঘায়। টানা বৃষ্টির কারণে অনেকেই জমিতে পানি থাকার কারণে সবজি চাষ করতে পারেন নাই। এবার সবজি চাষে খরচ অনেক বেশি হচ্ছে। আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে দাম ভাল পাবো বলে আশা করছি। কৃষি বিভাগের সূত্রে জানা যায়, গতবারের তুলনায় এবারে জেলায় কম সবজি চাষাবাদ হচ্ছে।


টানা ঝড় বৃষ্টির কারণে এবার হয়েছে সাত হাজার হেক্টর জমিতে। এতে উৎপাদন হবে দুই লাখ মেট্রিক টন শাক-সবজি। মাধবপুর উপজেলার কৃষি কর্মকর্তা সাইফুল ইসলাম বলেন, আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে সবজির বাম্পার ফলন হবে, এই এলাকার মাটি অনেক উর্বর তাই ফলন বেশি হয় এ অঞ্চলের, সবজি স্থানীয় চাহিদা মিটিয়ে চলে যাচ্ছে ঢাকা সিলেট চট্টগ্রাম বরিশালসহ, দেশের বিভিন্ন স্থানে কৃষি বিভাগের মাঠপর্যায়ের কর্মীরা কারিগরি সহায়তাসহ পরামর্শ দিয়ে যাচ্ছে।

মধুপুরে ইয়াবার মতো বিক্রি হচ্ছে ব্যথানাশক ট্যাবলেট

 মধুপুরে ইয়াবার মতো বিক্রি হচ্ছে ব্যথানাশক ট্যাবলেট


 


 মো: আ: হামিদ মধুপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধিঃ


 টাঙ্গাইলের মধুপুরের ইয়াবার পরিবর্তে বিক্রি হচ্ছে ব্যথানাশক ট্যাবলেট টাপেন্টা, পেন্টাডল, লোপেন্টা সেন্টারের মতো ভয়াবহ এ ক্যান্সারের ব্যথানাশক ওষুধ। মধুপুর শহরের বিভিন্ন ফার্মেসিতে  কোন রকম প্রেসক্রিপশন ছাড়াই এই ট্যাবলেট বিক্রয় করছেন ব্যাবসায়ীরা আর  মাদকসেবীরা সহজেই তা ক্রয় করছে। সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা জানান, এই ব্যথানাশক ট্যাবলেট ইয়াবার চেয়েও মারাত্মক ক্ষতিকারক।, মাদকসেবীরা দামে কম হওয়ায় মুয়া মুড়ির মত এই ট্যাবলেট ক্রয় করে ইয়াবার পরিবর্তে পেন্টাডল টাপেন্টা  কিনে খাচ্ছেন তারা। এক মাদক সেবি জানান পেন্টাডল,টাপেন্ডা, গুড়া করে ইয়াবার মতো সেবন করি। এব্যাপারে এলাকার সাধারণ মানুষ প্রেসক্রিপশন ছাড়া ফার্মেসিতে ব্যথানাশক ট্যাবলেট বিক্রি না করার জন্য কর্তৃপক্ষের দ্রুত হস্তক্ষেপ কামনা করেন। তা না হলে কোমলমতি অনেক শিশু এ মাদক সেবনে জড়িয়ে পড়বে। আর শিশু, ছাত্র যুবক সহ অনেক তাজা প্রাণ অকালে ঝরে যাবে বলে মনে করেন এলাকার সুধীমহল।  তাই এই ব্যাপারে উদ্ধিগ্ন রয়েছেন এলাকার অভিবাকগন কখন যেন এই মরন নেশায় জড়িয়ে পড়ে তাদের আদরের সন্তানরা।

সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসন কর্তৃক পরিবহন ও কাউন্টার-এ মোবাইল কোর্ট পরিচালনা

 সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসন কর্তৃক পরিবহন ও কাউন্টার-এ মোবাইল কোর্ট পরিচালনা


 


আজহারুল ইসলাম সাদী, জেলা প্রতিনিধিঃ


সাতক্ষীরা জেলার বিজ্ঞ জেলা প্রশাসক ও জেলা ম্যাজিস্ট্রেট এস এম মোস্তফা কামাল এঁর নির্দেশে,  আজ বুধবার (৩ সেপ্টেম্বর) সাতক্ষীরা সদর উপজেলার আলীপুর চেকপোস্ট এলাকায়, মোবাইল কোর্ট পরিচালিত হয়। এসময়ে যাত্রী পরিবহনকারী বাসগুলোতে পূর্বের হারে ভাড়া নেওয়া হচ্ছে কিনা, যাচাই করা হয়। এছাড়াও ড্রাইভিং লাইসেন্স ও গাড়ির রেজিষ্ট্রেশনসহ অনান্য ডকুমেন্টস না থাকায় বিভিন্ন বাস চালক ও মোটরসাইকেল আরোহীকে, সড়ক পরিবহন আইন, ২০১৮ অনুযায়ী অর্থ দন্ড প্রদান করা হয়। সাতক্ষীরা শহরের ঢাকাগামী বাসের, কাউন্টারগুলোতেও পূর্বের ভাড়া নেওয়া হচ্ছে কিনা, যাচাই করা হয় এবং স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে, যাত্রী পরিবহনের জন্য নির্দেশনা প্রদান করা হয়। জনস্বার্থে এই ধরনের অভিযান পরিচালনা অব্যাহত থাকবে।

তারেক রহমান এর ১৩ তম কারা মুক্তি দিবস উপলক্ষে কোটচাঁদপুর পৌর বিএনপি" র বিবৃতি।

 তারেক রহমান এর ১৩ তম কারা মুক্তি দিবস উপলক্ষে কোটচাঁদপুর পৌর বিএনপি" র বিবৃতি।




খোন্দকার আব্দুল্লাহ বাশার। 

খুলনা ব্যুরো প্রধান।

কোটচাঁদপুর পৌর বিএনপির সাবেক সভাপতি ও সাবেক পৌর মেয়র বর্তমান পৌর বিএনপি আহ্বায়ক এস কে এম সালাউদ্দিন বুলবুল সিডল ও পৌর বিএনপি সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও পৌর কাউন্সিলর বর্তমান পৌর বিএনপি আহ্বায়ক কমিটির সদস্য সচিব জনাব মোঃ ফারুক হোসেন খোকন এক বিবৃতিতে  বলেন  বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান জনাব তারেক রহমানের ১৩তম মুক্তি দিবস উপলক্ষে।



১/১১-এর সেনাসমর্থিত ফখরুদ্দিন-মঈনউদ্দীন সরকারের নির্মম ও বর্বর আজ ভয়াল কালোদিন আজকের এই দিনে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান জননেতা জনাব তারেক রহমান ১/১১'র ষড়যন্ত্র মঈউদ্দিন ফখরুউদ্দীনের সেচ্ছাচারিতার শিকার হন আমাদের প্রিয় নেতা জনাব তারেক রহমান। মঈউদ্দিন ও ফখরুউদ্দীন বর্তমান সরকারের সাথে ষড়যন্ত্র রচিত করে বিএনপি পরিবারকে ধংস করার যে কৌশল অবলম্বন করে ছিলো সেই নীল নকশা এই দেশের জনগণ পূরণ করতে দেইনি। সারাদেশে জুড়ে বিএনপির নেতাকর্মীদের উপাসনায় মুক্তি দিতে বাধ্য করা হয়। কিন্তু তারপরেও সেনাসমর্থিত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচনের মাঠে ও ভারতের দাবেদারির যোগসাজশে দেশের জনগণের গাড়ে আওয়ামীলীগ সরকার চাপিয়ে দিয়ে যায়।


এস কে এম সালাউদ্দিন বুলবুল সিডল,  ওইদিনের লোমহর্ষক কষ্টের কথা গুলো তুলে বলেন, বহুদলীয় গণতন্ত্রের জনক ও আধুনিক বাংলাদেশের স্থপতি শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান বীর উত্তম ও বিএনপি চেয়ারপার্সন তিনবারের সাবেক প্রধানমন্ত্রী, আপসহীনতার মুর্তপ্রতীক, গণতন্ত্রের জননী দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া'র গর্বিত উত্তরাধিকার, বিএনপি'র ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান দেশনায়ক জনাব তারেক রহমান-এর ১৩তম কারামুক্তি দিবস আজ। ১/১১-এর সেনাসমর্থিত ফখরুদ্দিন-মঈনউদ্দীন সরকারের নির্মম ও বর্বর নির্যাতনে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত এই নেতা ২০০৮ সালের এই দিনে জামিনে মুক্তি পান। কারামুক্তির পর উন্নত চিকিৎসার জন্য তিনি যুক্তরাজ্যে যান। 

  

দেশনায়ক জনাব তারেক রহমান দেশনেত্রীর মুক্তি ও গনতন্ত্র পুনরুদ্ধারের আন্দোলনে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ করছেন, নেতাকর্মীদের দিকনির্দেশনা দিয়ে উজ্জীবিত করছেন। এখনও প্রাণপ্রিয় নেতা বাহিরে থাকা সত্ত্বেও সারাদেশের বিএনপি পরিবার কে সুন্দর একটি প্লাটফর্ম তৈরি করে ফেলেছেন।

 

প্রিয় নেতা এ জাতির ভবিষ্যত আশার আলো আগামী বাংলাদেশের জনগণের আশার প্রতিফলন দেশনায়ক জনাব তারেক রহমান-এর ১৩তম কারামুক্তি দিবস উপলক্ষে কোটচাঁদপুর পৌর বিএনপি সহ সকল অঙ্গ সংগঠনে নেতাকর্মী সমর্থকদের পক্ষ থেকে জানাই আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন। 

আমি এবং আমার মতো লাখো তৃণমূল কর্মীরা প্রত্যাশা করে বসে আছে, তিনি অচিরেই দেশে ফিরে এসে জাতীয় রাজনীতির হাল ধরবেন। এবং গুম-খুন মুক্ত একটি আধুনিক ও স্বনির্ভর বাংলাদেশ বিনির্মাণ করবেন। দেশনায়ক জনাব তারেক রহমান-এর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন হবে এদেশের গনমানুষের সর্বাধিক কাঙ্ক্ষিত ও আনন্দের প্রত্যাবর্তন। গোটা বাংলাদেশ সেই ঐতিহাসিক প্রত্যাবর্তনের জন্য অধীর আগ্রহে পথ চেয়ে বসে আছে।

নওগাঁর আত্রাইয়ে মৎস্য আড়তে মাছের ব্যাপক আমদানি

নওগাঁর আত্রাইয়ে মৎস্য আড়তে মাছের ব্যাপক আমদানি



মোঃ ফিরোজ হোসাইন রাজশাহী ব্যুরো: নওগাঁর আত্রাইয়ে মৎস্য আড়তে ব্যাপক মাছের আমদানি লক্ষ্য করা গেছে বড় বড় রুই কাতলা মাছ মিলছে প্রতি কেজি ৪০- ৫০ টাকায়।


বৃহস্পতিবার ভোর থেকে উপজেলার বিখ্যাত মাছের আড়ত আত্রাই টোল মুক্ত মৎস্য আড়তে দেখা যায় প্রচুর মাছের আমদানি। শত শত গাড়ীতে করে মাছ আসছে উপজেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে।


আড়ত ঘুরে দেখা যায়,  প্রতি কেজি মাছ পাওয়া যাচ্ছে ৪০-৫০ টাকায়। প্রতিটি মাছের ওজন ১ কেজি থেকে ৩ কেজি, আবার কিছু মাছ ছিল ১১ কেজি ওজনের চেয়েও বেশি। 


বেলা বাড়ার সাথে সাথে বড়ো বড়ো মাছ ওজন ছাড়া প্রতি পিস ৫০ টাকায় বিক্রি হয়েছে।দাম কমের  খবর প্রচার হওয়ায় এলাকার মানুষ হুমড়ি খেয়ে আসতে থাকে। ফলে নদী পাড়াপাড়রের বেলী ব্রীজে সৃষ্টি হয় যানযট।


এব্যাপারে মৎস চাষিরা বলেন, গত কয়েক দিন থেকে রোদ ছিল হঠাৎ গতকাল সারাদিন বৃষ্টি হবার কারণে পুকুরে অক্সিজেন ঘাটতি হবার কারণে মাছ ভেসে ওঠে। যে কারণে মাছের আমদানি ও বৃদ্ধি পায়। এভাবে বৃদ্ধি হওয়ার কারণে অনেক চাষি মাছ বিক্রি করে গাড়ি ভাড়ার টাকা দিতে পারেনি। কেউ কেউ মাছ ফেলে চলে গেছেন।

বান্দাইখাড়া বাজার থেকে ১০০ থেকে ৮০ টাকা কেজি মাছ ক্রয় করে আত্রাই নিয়ে গিয়ে ৫০ টাকা কেজি বিক্রয় করে লোকশানের মুখে পড়ে৷ 

এব্যপারে উপজেলা সাহেবগঞ্জ এলাকার আজাহার আলী মাষ্টার বলেন, মোলবাইলে খবর পেয়ে মাছ কিনতে এসেছি। দাম কম পেয়ে খুব খুশি।

সিরাজগঞ্জ চিলগাছা সঃ প্রাঃ বিঃ ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি গার্মেন্টস শ্রমিক

সিরাজগঞ্জ চিলগাছা সঃ প্রাঃ বিঃ ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি গার্মেন্টস শ্রমিক


সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধিঃসদর উপজেলার রতনকান্দি ইউনিয়নে চিলগাছা দক্ষিনপাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সরকারী বিধিমালা লংঘন করে গার্মেন্টস শ্রমিককে ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি করায় শিক্ষক ও ছাত্রছাত্রী অভিভাবকদের মাঝে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। 

অভিযোগে জানা যায়, রতনকান্দি চিলগাছা দক্ষিনপাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির মেয়াদ শেষ হওয়ায় নতুন কমিটি গঠনে কোন প্রকার আলোচনা না করেই  স্কুলের প্রধান শিক্ষক একক সিদ্ধান্ত ও মন গড়া অযোগ্য ব্যক্তিদের সমন্বয়ে কমিটি গঠন করেছেন। 

স্থানীয়রা  জানান,নতুন ম্যানেজিং গঠন করার পুর্বে পুরাতন ম্যানেজিং কমিটিকে নিয়ে একটি বৈঠক করতে হবে।  সেই বৈঠকে পুরাতন ম্যানেজিং কমিটি বিলুপ্ত করতে সকলের মতামতের ভিত্তিতে সিদ্ধান্ত গ্রহন করে একটি রেজুলেশন করতে হবে। রেজুলেশনের আলোকে নতুন কমিটি গঠনের জন্য আলোচনা করতে হবে। আলোচনায় সকলের চুড়ান্ত সিদ্ধান্ত মোতাবেক  নতুন কমিটি গঠনের সিদ্ধান্ত গ্রহন করতে হবে। নতুন কমিটি গঠনের জন্য একটি রেজুলেশন করতে হবে। প্রধান শিক্ষক মো. আবু ইউসুব কোন আলোচনা ও সিদ্ধন্ত ব্যতিরেকে তার মনগড়া কয়েকজন ব্যক্তিদের  নিয়ে ঘরোয়া মিটিং এর মাধ্যমে মন গড়া কমিটি গঠন করেছেন যা ম্যানেজিং কমিটির গঠনতন্ত্রের বিধিমালার বহির্ভুত। প্রধান শিক্ষক মো. আবু ইউসুব নতুন কমিটিতে এমনি একজন ব্যক্তিকে সভাপতি নিযুক্ত করেছেন যিনি একজন গার্মেন্টস শ্রমিক বছরে দু-একবার ছুটিতে বাড়ি আসেন। স্কুল পরিচালনায় তার কোন প্রকার অবদান থাকার কথা নয়। জামাত শিবির সংগঠনের সমর্থক মো. আব্দুর রাজ্জাক গার্মেন্টস শ্রমিককে  সভাপতি ও তার স্ত্রী কমিটির সদস্য নির্বাচিত করা হয়েছে। 

এ বিষয়ে চিলগাছা গ্রামের জেলা পরিষদের সদস্যা ও জেলা মহিলা আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারন সম্পাদক মোছা. নাসরিন তালুকদার জানান, আমার স্বামী মৃত শহিদুল ইসলাম তালুকদার দীর্ঘদিন স্কুল কমিটিতে ছিলেন। তার মৃত্যুর পর ২০০২ সালের পর থেকে যতগুলো কমিটি হয়েছে সবই অনিয়মতান্ত্রিক ভাবে গঠন করা হয়েছে। 

এ ব্যপারে প্রধান শিক্ষক মো. আবু ইউসুব জানান,  আলোচনা করে সভাপতি নির্বাচন করা হয়েছে এবং রেজুলেশনও করা হয়েছে। 

এ বিষয়ে উপজেলা শিক্ষা অফিসার মো. মহসিন রেজা জানান, কমিটি অনুমোদন করা হয়েছে। তবে কমিটির বিষয়ে কোন অভিযোগ আসলে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সিরাজগঞ্জে ইমামদের প্রশিক্ষন কোর্স'র উদ্বোধন

 সিরাজগঞ্জে ইমামদের প্রশিক্ষন কোর্স'র উদ্বোধন


সিরাজগঞ্জ  জেলা প্রতিনিধিঃজেলা পর্যায়ে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত ইমামদের অংশগ্রহণ ৫ দিনব্যাপি রিফ্রেসার্স প্রশিক্ষণ কোর্সের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে। 

বৃহস্পতিবার  (৩ সেপ্টেম্বর ) শহীদ  শামসুদ্দিন সম্মেলনে  কক্ষে  সিরাজগঞ্জ  ইসলামিক ফাউন্ডেশনের আয়োজনে  এবং  জেলা প্রশাসনের  সহযোগিতায় ৫ দিনব্যাপি রিফ্রেসার্স প্রশিক্ষণ কোর্সের উদ্বোধন করেন জেলা  প্রশাসক  ড . ফারুক আহাম্মদ ।   ইসলামিক  ফাউণ্ডেশন এর  উপপরিচালক  মোহাম্মদ  ফারুক  আহামেদ  সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন,ইসলামিক ফাউন্ডেশন ইমাম প্রশিক্ষণ একাডেমি পরিচালক মো.আনিসুজ্জামান সিকদার।

এই সময় স্বাগত বক্তব্য রাখেন সিরাজগঞ্জ ইসলামিক  ফাউণ্ডেশন এর  উপপরিচালক  মোহাম্মদ  ফারুক  আহামেদ।

অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন অনুষ্ঠান শেষে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু ও তাঁর পরিবারের নিহতদের রুহের মাগফিরাত কামনা করে এবং করোনা ভাইরাস থেকে দেশবাসির মুক্তি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেক হায়াত কামনা করে দোয়া করা হয়। এতে মুনাজাত পরিচালনা করেন রাজশাহী  বিভাগের  ধর্মীয় প্রশিক্ষক  মাওলানা মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ  আব্দুল মোতালেব।

এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন, 

ইসলামিক ফাউণ্ডেশন  সহ কারী পরিচালক  মোহাম্মদ  সিরাজুল ইসলাম,  মাস্টার  ট্রেইনার সিহাব উদ্দিন , সিএ ইব্রাহিম  হিসাব রক্ষক ইব্রাহিম  খলিল প্রমুখ। ৫ দিনের এই প্রশিক্ষণ কোর্সের জেলার বিভিন্ন উপজেলা থেকে মোট ১ শত প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত ইমাম অংশ নেয়।

অনুষ্ঠান পরিচালনা  করেন , ইসলামিক ফাউণ্ডেশন  শাহজাদপুর  উপজেলার কর্মকর্তা  মোঃ  হাসিবুর রহমান ।

নওগাঁর আত্রাইয়ে কয়েল হতে ভয়াভহ অগ্নিকাণ্ড প্রতিবেশীদের চেষ্টায় দূর্ঘটনা রোধ

নওগাঁর আত্রাইয়ে কয়েল হতে ভয়াভহ অগ্নিকাণ্ড প্রতিবেশীদের চেষ্টায় দূর্ঘটনা রোধ


মোঃ ফিরোজ হোসাইন রাজশাহী ব্যুরো:নওগাঁর আত্রাই উপজেলার বান্দাইখাড়া গ্রামে কয়েল হতে ভয়াভহ অগ্নিকাণ্ডের সৃষ্টি হয় এবং দ্রুত এলাকাবাসীর সচেতনতার জন্য দুর্ঘটনা রোধ করা সম্ভব হয়।

ঘটনাসুত্রে জানা গেছে, উপজেলার বান্দাইখাড়া এলাকার আক্কাস আলী তার গরুর রুমে কয়েল দেয় এবং কয়েল হতে লাড়কির সংস্পর্শে গিয়ে রাত ১০.৩০ মিনিটে কয়েল হতে আগুন গোয়াল ঘরে লেগে ভয়াভহ অগ্নিকাণ্ডের সৃষ্টি হয়ে আগুনের তাপমাত্রা বৃদ্ধি পেয়ে গোয়াল ঘরের ওপর দিয়ে জ্বলতে শুরু করে। 

পাশের বাসা হতে অগ্নিকাণ্ডে দেখতে পেলে মসজিদের মাইকে প্রচার করা হলে প্রতিবেশিরা দ্রুত ছুটে এসে আগুন নেভাতে সক্ষম হয়। এবং যথাসময়ে আগুন নজরে না পড়লে উক্ত ঘর হতে এলাকায় ব্যপক ক্ষতি হওয়ার ঝুঁকি ছিল।

নারিকেল গাছের মাথা থেকে কৃষকের মৃতদেহ উদ্ধার

 নারিকেল গাছের মাথা থেকে কৃষকের মৃতদেহ উদ্ধার



মোরশেদ আলম

যশোর প্রতিনিধি 


 যশোরের অভয়নগরে রহমত গাজী (৬৫) নামে এক কৃষকের মৃতদেহ নারিকেল গাছের মাথা থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। বুধবার  উপজেলার ভাঙ্গাগেট লক্ষিপুর গ্রামে নিজ বাড়ির একটি নারিকেল গাছ থেকে মৃত অবস্থায় তাঁর লাশ উদ্ধার করে ফায়ার সার্ভিস একটি দল। মৃত রহমত গাজী লক্ষিপুর গ্রামের মৃত তোরাপ গাজীর ছেলে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, প্রায় ৬০ ফুট উচ্চতার নারিকেল গাছের মাথায় রহমত গাজী অচেতন অবস্থায় বসে আছেন। শতশত গ্রামবাসী গাছের চারিপাশে দাঁড়িয়ে আছে। অনেকে চিৎকার করে রহমত গাজীকে ডাকলেও তিনি কোন উত্তর দিচ্ছেন না।

এসময় রহমত গাজীর স্ত্রী রিজিয়া বেগমের সাথে কথা হলে তিনি জানান, বুধবার বেলা আনুমানিক ১২টার সময় তাঁর স্বামী বাড়ির সামনের একটি নারিকেল গাছে ওঠেন। গাছের মাথায় ওঠার পর দুইটি নারিকেল নিচে ফেলে দেন। প্রায় আধাঘণ্টা পর দেখতে পান স্বামী গাছের মাথায় বসে আছেন। অনেক ডাকাডাকি করে কোন সাড়াঁশব্দ না পেলে তিনি প্রতিবেশীদের খবর দেন। তাঁর স্বামী কৃষি কাজের পাশাপাশি নারিকেল পাড়ার কাজ করতেন।

এরই মধ্যে ফায়ার সার্ভিসের একটি উদ্ধার দল ঘটনাস্থলে পৌঁছে শুরু করে উদ্ধার অভিযান। প্রায় ৪০ মিনিটের চেষ্টায় গাছের মাথা থেকে বৃদ্ধকে উদ্ধার করে নিচে নামাতে সক্ষম হয় তারা।

উদ্ধার দলের প্রধান নওয়াপাড়া ফায়ার সার্ভিস এন্ড সিভিল ডিফেন্সের স্টেশন অফিসার খাঁন এহসান উল আলম বলেন, খবর পাওয়া মাত্র আমরা ঘটনাস্থলে চলে আসি। দলের সদস্যদের সহযোগিতায় প্রায় ৬০ ফুট উচ্চতার নারিকেল গাছের মাথা থেকে অচেতন ও অক্ষত অবস্থায় বৃদ্ধকে উদ্ধার করা হয় এবং দ্রুত উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পাঠানো হয়।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরী বিভাগে কর্তব্যরত চিকিৎসক হাফিজা নার্গিস জানান, নারিকেল গাছ থেকে উদ্ধার করা ব্যক্তি হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে মারা গেছেন। হাসপাতালে পৌঁছানোর পূর্বেই তিনি মারা গিয়েছিলেন।

কালিগঞ্জে আগামীর সম্ভাবনা ভাড়াশিমলার উদ্যোগে অসহায়ের মাঝে সেলাই মেশিন প্রদান

কালিগঞ্জে আগামীর সম্ভাবনা ভাড়াশিমলার উদ্যোগে অসহায়ের মাঝে সেলাই মেশিন প্রদান


আজহারুল ইসলাম সাদী, জেলা প্রতিনিধিঃসাতক্ষীরা জেলার কালিগঞ্জ উপজেলার "আগামীর সম্ভাবনা ভাড়াশিমলার" উদ্যোগে 

মানবিক যুবনেতা কালিগঞ্জ উপজেলা যুবলীগের সংগ্রামী সাধারন সম্পাদক ও "আগামীর সম্ভাবনার ভাড়াশিমলার'' পরিচালক, মোঃ নাজমুল হাসান (নাইম) এর ব্যবস্থাপনায়, আজ বুধবার (৩ সেপ্টেম্বর) আগামীর সম্ভাবনার ভাড়াশিমলার পক্ষ থেকে ৮ নং ভাড়াশিমলা ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ডের পশ্চিম নারায়ন পুর গ্রামের ঋষি পরিবারের এক অসহায় বোনকে একটি  সেলাই মেশিন প্রদান করা হয়। এসময় যুবনেতা নাজমুল হাসান নাইম বলেন,  বর্তমান করোনা কালীন সময়ে মানুষের দারিদ্রতার হার অনেক বেড়ে গেছে, এজন্য  ভাড়াশিমলা ইউনিয়নের প্রত্যেকটি ওয়ার্ড ভিত্তিক মানবিক সহযোগিতা এভাবে অব্যাহত থাকবে।

এবং সমাজে যারা গরীব অসহায় বিধবা  মা ও বোন আছেন তাদের তালিকা করার আহ্বান জানান।

উক্ত সেলায় মেশিন বিতরণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, আগামী সম্ভাবনার ভাড়াশিমলার  উপদেষ্টা ৭ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য, মোঃ নিজামুদ্দিন, ভাড়াশিমলা ইউনিয়ন যুবলীগের  সাধারন সম্পাদক  মোঃ আব্দুল আলিম, নলতা ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি মোঃ মোস্তাফি সুজন, সহ-সভাপতি মোঃ আজিজুর রহমান নয়ন , পশ্চিম নারায়ন পুর যুবউন্নয়ন  সংঘের সংগঠনিক সম্পাদক, মোঃ আব্দুস সামাদ প্রমূখ।

ঘোড়াঘাট ইউএনও ও তার বাবাকে কুপিয়ে জখম

 ঘোড়াঘাট ইউএনও ও তার বাবাকে কুপিয়ে জখম

 




দিনাজপুর প্রতিনিধি:  দিনাজপুরের ঘোড়াঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ওয়াহিদা খানম (৩৫) ও তার বাবা অমর আলীকে কুপিয়ে গুরুতর জখম করেছে দুর্বৃত্তরা।

গুরুতর আহত অবস্থায় তাদেরকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

আজ ভোর রাতে  আড়াইটার দিকে ইএনও’র সরকারি বাসভবনের ভেন্টিলেটর ভেঙে এই ঘটনা ঘটিয়েছে দুর্বৃত্তরা।

জানা গেছে, ইউএনও’র বাবা ওমর আলী প্রতিদিন সকালে হাঁটতে বের হন। কিন্তু আজ সকালে তিনি বাড়ি থেকে বের না হওয়ায় তার হাঁটার সঙ্গীরা খোঁজ নিতে বাড়িতে যান। পরে বাড়িতে ডাকাডাকি করেও কোনো সাড়া না পেয়ে পুলিশকে খবর দেয়।

পরে পুলিশ এসে ইউএনও ও তার বাবাকে আহতাবস্থায় দেখে তাদেরকে উদ্ধার করে হাসপাতালে প্রেরণ করে। ঘটনার সময় প্রহরীকে একটি ঘরে বেঁধে রাখা হয়েছিল বলে  জানায় পুলিশ।

তবে কারা এই ঘটনাটি কেন ঘটিয়েছে এই বিষয়ে কেউ কিছু বলতে পারছে না।

ঘটনাস্থলে সিসিটিভি ফুটেজ যাচাই করার কাজ চলছে।

দিনাজপুর-৬ আসনের জাতীয় সংসদ শিবলী সাদিক, দিনাজপুরের জেলা প্রশাসক মো. মাহমুদুল আলম ও পুলিশ সুপার মো. আনোয়ার হোসেন ঘটনাস্থলে উপস্থিত আছেন।

ঘোড়াঘাট থানার ওসি আমিরুল ইসলাম জানান, ঠিক কী কারণে এ ঘটনা ঘটেছে তা জানা যায়নি। বিষয়টি তদন্ত করা হচ্ছে।

কোন মানুষ যেন চিকিৎসা সেবা থেকে বঞ্চিত না হয় সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি

 কোন মানুষ যেন চিকিৎসা সেবা থেকে বঞ্চিত  না হয় সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে  হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি




মামুনুর রশিদ,দিনাজপুর প্রতিনিধি॥ জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীদের আরও আন্তরিকতার সাথে কাজ করতে হবে উল্লেখ করে বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশে স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করেছে। করোনার এই দুর্যোগে প্রতিটি মানুষ যেন চিকিৎসা সেবা পায় সেজন্য চিকিৎসা সেবায় সর্বোচ্চ বরাদ্দ দিয়েছেন। করোনা যোদ্ধা চিকিৎসকরা করোনার এই মুহুর্তে নিজের জীবনকে বাজি রেখে মহামারির এই রোগকে সেবা দিয়ে যাচ্ছে। তাদের এই অবদান পৃথিবী যতদিন থাকবে ততদিন পর্যন্ত মানুষ ভুলবে না। তিনি বলেন, স্বাস্থ্য খাতে দুর্নীতির বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কঠোর অবস্থানে রয়েছে। এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে করোনা রোগীসহ সকল ধরনের রোগী সঠিক ভাবে চিকিৎসা সেবা পায় সে দিকে খেয়াল রাখতে হবে।  

৩ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার  আওয়ামীলীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পক্ষ থেকে করোনা প্রতিরোধে এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল দিনাজপুরের স্বাস্থ্যকর্মীদের মাঝে সুরক্ষা সামগ্রী বিতরনকালে জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি এসব কথা বলেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডাঃ শিবেস সরকার, হাসপাতালের পরিচালক ডাঃ নির্মল চন্দ্র দাস, উপ-পরিচালক ডা: শাহ মোজাহেদুল ইসলাম, সিভিল সার্জন ডাঃ আব্দুল কুদ্দুস, হাসপাতালের সহকারী পরিচালক ডাঃ নজমুল ইসলাম, ডা: সিরাজুল ইসলাম, কলেজের উপাধ্যক্ষ ডাঃ নাদির হোসেন, সহযোগী অধ্যাপক ডাঃ নুরুজ্জামান, কার্ডিওলজির সহকারী অধ্যাপক ডাঃ শাহরিয়ার কবির, আইসিইউ-এর কনসালটেন্ট ডাঃ আকতার কামাল, নিউরোলজি বিভাগের প্রধান ডা: বদরুল হাসান, নিউরো সার্জারি প্রধান ডা: সারোয়ার মোর্শেদ, শিশু বিশেষজ্ঞ ডাঃ ফরিদ আহমেদ, ডাঃ মশিউর রহমানসহ চিকিৎসকবৃন্দ।

নোয়াখালীতে নতুন একটি বিমান বন্দরের নির্মাণ কাজ শুরু হলো

 নোয়াখালীতে নতুন  একটি বিমান বন্দরের নির্মাণ কাজ শুরু হলো

মোঃ আওলাদ হোসেন 

জেলা প্রতিনিধি ভোলা (দৌলতখান)


শুরু হয়েছে নোয়াখালী বিমান বন্দর তৈরীর কার্যক্রম, চলছে বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর ক্যাম্প নির্মাণ কাজ।

নোয়াখালীর সদর উপজেলায় স্বাধীনতার আগে ফসলি জমিতে কীটনাশক ছিটানোর জন্য একটি এয়ারস্ট্রিপ ছিল। স্বাধীনতা-পরবর্তী সময়ে সেটি যথাযথ রক্ষণাব্ক্ষেণ ও পরিচর্যার অভাবে পরিত্যক্ত রয়েছে।ওই এয়ারস্ট্রিপে ৩০ একর জমি অব্যবহৃত পড়ে আছে। সেই স্থানেই তৈরি হবে ছোট বিমান উঠানামার  বিমানবন্দর। নোয়াখালীবাসীর দীর্ঘদিনের স্বপ্ন পূরণ করতে জেলার ধর্মপুর ইউনিয়নের উত্তর ওয়াপদা বাজার সংলগ্ন এলাকায় পূর্ণাঙ্গ বিমানবন্দর নির্মাণের উদ্যোগ বাস্তবায়ন হতে যাচ্ছে।জেলা কৃষিসম্প্রসারণের অধিদফতরের পূর্বে চর শুলাকিয়া নামক স্থানে ১৯৯৫ সালে সরকারিভাবে একটি বিমানবন্দর নির্মাণের কাজ শুরু হয়‌।বিমানবন্দরটি নির্মাণের জন্য কৃষি অধিদফতর বীজ সংরক্ষণের প্রায় ৪০ একর জমিও অধিগ্রহণ করা হয়। নির্মাণ সম্পন্ন হয় বিমানবন্দরের রানওয়ে, যেখানে প্রাথমিকভাবে খরচ হয় প্রায় দুই কোটি টাকা। কিন্তু কিছু জটিলতায় সংযোগসড়ক ও প্রয়োজনীয় অবকাঠামো নির্মিত না হওয়ায় বিমানবন্দরের নির্মাণ কাজ বন্ধ হয়ে পড়ে এবং বিমানবন্দরের নির্মাণ কাজও শেষ হয়নি।


সরকারি উদ্যোগে তেমন কোনো উল্লেখযোগ্য শিল্পকারখানা গড়ে না উঠলেও বেসরকারী উদ্যোগে অনেকগুলো এগ্রো বেইজড ক্ষুদ্রশিল্প গড়ে উঠে এ অঞ্চলে। তাই সাগরতীরের নোয়াখালীতে আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর প্রতিষ্ঠা হলে এ অঞ্চলের শিল্প সম্ভাবনাকে কাজে লাগাতে পারবে সরকার।


নোয়াখালী জেলা শহর থেকে ১৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে ধর্মপুর ইউপির উত্তর ওয়াপদা বাজারের পাশে জেলা কৃষি সম্প্রসারণের অধিদফতরের আগের তৈরি রানওয়েসহ বিশাল জায়গায় প্রস্তাবিত বিমানবন্দরের জন্য  নির্ধারণ করা হয়েছে।   বিমানবন্দর নির্মাণের জন্য ২০১৮ সালের ২২ জুলাই সাবেক বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রী একে.এম শাহজাহান কামালসহ মন্ত্রণালয়ের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা স্থান পরিদর্শন করে বিমানবন্দর নির্মাণের ঘোষণা দেন বাংলাদেশের অন্যান্য অঞ্চলের তুলনায় নোয়াখালী অঞ্চলে প্রবাসীদের হার তুলনামূলকভাবে অনেক বেশি। নোয়াখালীতে আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর প্রতিষ্ঠিত হলে তারা সরাসরি বিদেশ থেকে নোয়াখালীতেই আসতে পারবে। একইসঙ্গে নিঝুম দ্বীপে বিদেশি পর্যটকরাও আসতে পারবে। এতে তাদের বাড়তি ভোগান্তিতে পড়তে হবে না এবং ঢাকার বিমানবন্দরের উপরও চাপ কমে যাবে।


বিমানবন্দর নির্মাণ হলে নোয়াখালীর অর্থনৈতিক চিত্র পাল্টে যাবে।

যশোরে অস্ত্র-গুলিসহ ডাকাত দলের ৪ সদস্য গ্রেফতার

যশোরে অস্ত্র-গুলিসহ ডাকাত দলের ৪ সদস্য গ্রেফতার




সুমন হোসেন,  যশোর জেলা প্রতিনিধি:যশোরে দুইটি ডাকাতির ঘটনায় আন্তঃজেলা ডাকাত দলের ৪ সদস্যকে গ্রেফতার করেছে যশোর ডিবি পুলিশ।


মঙ্গলবার (১ সেপ্টেম্বর) ভোরে যশোরের শার্শা ও ঝিকরগাছা উপজেলায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়। এসময় তাদের কাছ থেকে অস্ত্র-গুলি, নগদ টাকা ও লুণ্ঠিত স্বর্ণালংকার উদ্ধার করা হয়।

পুলিশ সুপার মুহাম্মদ আশরাফ হোসেন নিজ কার্যালয়ে এক ব্রিফিংয়ে এসব তথ্য জানান।


আটককৃতরা হলেন: সাতক্ষীরার কালীগঞ্জ উপজেলার শংকরপুর গ্রামের আব্দুল জব্বারের ছেলে বাহার আলী তরফদার (৪০), শ্যামনগর উপজেলার জয়নগর গ্রামের আনছার গাজীর ছেলে শফিকুল ইসলাম ওরফে রেজাউল ওরফে গুড্ডু (৪০), আশাশুনি উপজেলার বুধহাটা শ্বেতপুর গ্রামের মৃত মকছেদ সরদারের ছেলে আব্দুস সালাম সরদার (৫৫) ও যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলার মির্জাপুর গ্রামের মৃত ইসমাইল হোসেনের ছেলে তহিদুর রহমান ওরফে কালু।

পুলিশ সুপার জানান, গত ২৩ আগস্ট মনিরামপুর উপজেলার পলাশী গ্রামে মনির হোসেন নামে একজনের বাড়িতে এবং ২৮ আগস্ট ঝিকরগাছা উপজেলার নির্বাসখোলা গ্রামের রানা বিশ্বাসের বাড়িতে ডাকাতির ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় ওই দুই পরিবার ৭ লাখ ৬২ হাজার টাকার মালামাল লুটের অভিযোগে পৃথক দুটি মামলা করেন। মামলা দুটিতে গোয়েন্দা পুলিশ তদন্ত শুরু করে।

মঙ্গলবার ভোরে শার্শা উপজেলার নাভারণ সাতক্ষীরা মোড়ে অভিযান চালিয়ে আন্তঃজেলা ডাকাত দলের সদস্য বাহার আলী তরফদার, শফিকুল ইসলাম গুড্ডু ও সালাম সরদারকে আটক করা হয় বলে জানান তিনি।

এরপর তাদের দেয়া তথ্য মতে ঝিকরগাছা উপজেলার মির্জাপুর গ্রামে অভিযান চালিয়ে অপর সদস্য তহিদুর রহমান কালুকে আটক করা হয়। এসময় তাদের কাছ থেকে একটি ওয়ান শুট্যার গান, এক রাউন্ড গুলি, একটি এয়ারগান, নগদ এক লাখ ৭৯ হাজার টাকা, আড়াই ভরি স্বর্ণালংকারসহ ডাকাতির কাজে ব্যবহৃত সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়। বলেন পুলিশের এ কর্মকর্তা।

পুলিশ সুপার আরো জানান, আটককৃতদের ডাকাতির মামলায় গ্রেফতার দেখানো হয়েছে এবং তাদের বিরুদ্ধে অস্ত্র আইনে নতুন মামলা করা হয়েছে।

পটিয়ায় চার ইউনিয়ন যুবলীগ কমিটির বিলুপ্ত নতুন আহবায়ক কমিটি গঠিত

 পটিয়ায় চার ইউনিয়ন যুবলীগ কমিটির বিলুপ্ত নতুন আহবায়ক কমিটি গঠিত



সেলিম চৌধুরী, পটিয়া প্রতিনিধিঃ পটিয়া উপজেলা যুবলীগের বর্ধিত সভায় ৪ টি ইউনিয়নের কমিটি বিলুপ্ত করা হয়েছে।

বুধবার(২ সেপ্টেম্বর) বিকেলে পটিয়াস্থ হুইপ সামশুল হক চৌধুরীর কার্যালয়ের হল রুমে কার্যনির্বাহী কমিটির সভায় আশিয়া, জিরি, খরনা ও দক্ষিণ ভূর্ষি ইউনিয়ন যুবলীগের  কমিটি বিলুপ্ত করা হয়।

উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক হাসান উল্লাহ চৌধুরীর সভাপতিত্বে, যুগ্ন আহ্বায়ক ইমরান উদ্দিন বশির ও মাষ্টার রিটন নাথের যৌথ সঞ্চালনায় এতে বক্তব্য রাখেন উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য মোরশেদুল হক, মো. ফোরকান, আজগর আলী বাহাদুর,আবুল হাসনাত ফয়সাল,  মো. দিদারুল আলম, শাহ আলম মেম্বার, এনামুল হক মজুমদার, হারুন মাষ্টার, সৈয়দ জাবেদ সরোয়ার, রবিউল আলম ছোটন, শীতল তালুকদার, মোহাম্মদ মহিউদ্দিন, এয়ার মোহাম্মদ, নাজিম উদ্দিন রনি, শাহ আজিজ, মিঠুন চৌধুরী।

সভা শেষে বিলুপ্ত হওয়া চারটি ইউনিয়নে ৪ সদস্য বিশিষ্ট আহবায়ক কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে।

আশিয়া ইউনিয়নে আহবায়ক করা হয়েছে মোহাম্মদ হোসেন কে, যুগ্ম আহবায়ক করা হয়েছে যথাক্রমে মাহফুজুল আলম চৌধুরী, মাহফুজুল হক ও তৌহিদুল ইসলাম চৌধুরী জিকুকে।

খরনা ইউনিয়নে আহবায়ক করা হয়েছে মিঠুন চৌধুরীকে, যুগ্ম আহবায়ক করা হয়েছে যথাক্রমে কামাল উদ্দিন পারভেজ, ফয়সাল আহমেদ জনি ও মাইমুন চৌধুরীকে।

দক্ষিণ ভূর্ষি ইউনিয়নে আহবায়ক করা হয়েছে মোরশেদুল হক কে, যুগ্ম আহবায়ক করা হয়েছে যথাক্রমে রণধীর দে ও মোঃরাসেল কে।

জিরি ইউনিয়নে আহবায়ক করা হয়েছে শাহ আজিজকে, যুগ্ম আহবায়ক করা হয়েছে যথাক্রমে মোহাম্মদ মহিউদ্দিন, মোঃ ফেরদৌস ও মোঃ ওয়াহেদ কে।

আহ্বায়ক কমিটিকে সম্মেলনের মাধ্যমে নতুন কমিটি গঠন করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।



দারুল আরকাম মাদ্রাসার দেড় লক্ষাধিক শিক্ষার্থীর ভবিষ্যৎ জীবন অনিশ্চিত

দারুল আরকাম মাদ্রাসার দেড় লক্ষাধিক শিক্ষার্থীর ভবিষ্যৎ জীবন অনিশ্চিত





আব্দুর রাজ্জাক, 


আলাদা প্রকল্প প্রস্তাব ধর্ম মন্ত্রণালয়ে * বিএনপি-জামায়াতের এজেন্টরা অপপ্রচারে লিপ্ত

যৌক্তিক কারণ ছাড়াই ইসলামিক ফাউন্ডেশনের (ইফা) মসজিদভিত্তিক শিশু ও গণশিক্ষা প্রকল্প থেকে দারুল আরকাম মাদ্রাসাকে বাদ দেয়া হয়েছে। ফলে মাদ্রাসার শিক্ষকরা জানুয়ারি থেকে আট মাস ধরে বেতন-ভাতা পাচ্ছেন না। এতে হুমকির মুখে পড়েছে সারা দেশের দেড় লক্ষাধিক শিক্ষার্থীর ভবিষ্যৎ জীবন। এতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অভিপ্রায়ে প্রতিষ্ঠিত দারুল আরকাম মাদ্রাসার অস্তিত্ব হুমকির মুখে পড়েছে।


এদিকে দারুল আরকাম মাদ্রাসাকে স্থায়ী রূপ দিতে ইসলামিক ফাউন্ডেশন আলাদা প্রকল্প প্রস্তাব তৈরি করে ধর্ম মন্ত্রণালয়ে পাঠিয়েছে। ১৪ জুন ধর্ম প্রতিমন্ত্রী শেখ আবদুল্লাহ মারা যাওয়ার পর মন্ত্রণালয়ের দেখভাল করছেন প্রধানমন্ত্রী। এ অবস্থায় মাদ্রাসাটির স্থায়ী রূপ দিতে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন শিক্ষক ও অভিভাবকরা। 


সূত্র জানায়, পরিকল্পনা কমিশন ১১ মে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের প্রস্তাবিত পাঁচ বছর মেয়াদি ৭তম পর্বে মসজিদভিত্তিক শিশু ও গণশিক্ষা প্রকল্পে তিন হাজার ১২৮ কোটি ৪৬ লাখ টাকা বরাদ্দ দিয়েছে। তবে এ প্রকল্প থেকে দারুল আরকাম মাদ্রাসাকে বাদ রাখা হয়।


এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে ইফার মহাপরিচালক (ডিজি) আনিস মাহমুদ কপোতাক্ষ নিউজ কে বলেন, আলাদা প্রকল্পের মাধ্যমে দারুল আরকাম মাদ্রাসা করতে যাচ্ছে সরকার। মাদ্রাসাটি চালু করার সময় যেসব প্রক্রিয়া সম্পন্ন করার প্রয়োজন ছিল তার কিছুই মানা হয়নি। বিশেষ করে প্রকল্পের অধীনে পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত শিক্ষা ব্যবস্থা রয়েছে। কিন্তু এসব শিক্ষার্থী কোন শিক্ষা বোর্ডের অধীনে পরীক্ষা দেবে? তাদের সিলেবাস কারা তৈরি করবেন তা উল্লেখ নেই। এসব কারণে প্রকল্প থেকে মাদ্রাসাটিকে বাদ দেয়া হয়। আমরা চাই মাদ্রাসাগুলো মাদ্রাসা বোর্ডের অধীনে ইবতেদায়ি মাদ্রাসা হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হোক। সেভাবেই প্রকল্প প্রস্তাব তৈরি করা হয়েছে। এটি পাস হলে মাদ্রাসার শিক্ষক পদগুলো স্থায়ী হবে।


এ বিষয়ে জানতে চাইলে ধর্ম সচিব মো. নুরুল ইসলাম দৈনিক কপোতাক্ষ নিউজ কে বলেন, দারুল আরকাম মাদ্রাসার জন্য আলাদা প্রকল্প প্রস্তাব পাঠিয়েছে ইসলামিক ফাউন্ডেশন। এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী সিদ্ধান্ত দেবেন।


নাম প্রকাশ না করার শর্তে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের একাধিক কর্মকর্তা জানান, এ মাদ্রাসায় কওমি ও আলিয়া নেসাবের আলেমদের চাকরি হওয়ায় আলেম সমাজে প্রধানমন্ত্রীর ব্যাপক সুনাম হয়েছিল। ইসলামিক ফাউন্ডেশনে ঘাপটি মেরে থাকা বিএনপি-জামায়াতের এজেন্টরা কৌশলে মসজিদভিত্তিক শিশু ও গণশিক্ষা কার্যক্রম (৭ম পর্যায়) প্রকল্প থেকে মাদ্রাসাটি বাদ দিয়ে পরিকল্পনা কমিশনে প্রস্তাব পাঠায়। ইসলামিক ফাউন্ডেশনের পাঠানো প্রস্তাবটি অনুমোদন করে পরিকল্পনা কমিশন। প্রকল্প পাস হলেও জানুয়ারি থেকে বেতন-ভাতা পাচ্ছেন না মাদ্রাসার শিক্ষকরা। এ সুযোগে আলেম সমাজে ঘাপটি মেরে থাকা বিএনপি-জামায়াতের চক্রটি প্রধানমন্ত্রী ও সরকারের বিরুদ্ধে নানা অপপ্রচার চালাচ্ছে। সরকারের ইমেজ ক্ষুণ্ন করছে।


এ প্রসঙ্গে দারুল আরকাম শিক্ষক সমিতির মহাসচিব  জাকির হোসেন গোপালগঞ্জী দৈনিক কপোতাক্ষ নিউজ কে বলেন, এ মাদ্রাসার ধারণা প্রধানমন্ত্রীর। 


এ মাদ্রাসা বন্ধ হোক তা তিনি অবশ্যই চাইবেন না। আট মাস ধরে আমরা বেতন-ভাতা পাচ্ছি না। করোনা পরিস্থিতির কারণে আমরা কোনো আয়ও করতে পারছি না। ইসলামিক ফাউন্ডেশনের ডিজি ও ধর্ম সচিবের সঙ্গে সাক্ষাৎ করে প্রতিকার চেয়েছি। এ বিষয়ে আমরা প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ চাই।


মানিকগঞ্জ জেলার  হরিরামপুর  উপজেলার উত্তর চাঁন পুর দারুল আরকাম মাদ্রাসার সভাপতি ও অভিভাবক শামছুল আলম দৈনিক কপোতাক্ষ নিউজ কে বলেন, জমি দেয়াসহ সব ধরনের সহযোগিতা করে মাদ্রাসা করেছি। শিক্ষার্থীদের ভর্তিও সময় অভিভাবকদের নানা কথা বলেছি। অথচ এখন দেখছি শিক্ষকদের বেতন-ভাতা বন্ধ কয়েক মাস ধরে। প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করছি।


প্রাথমিক শিক্ষাবঞ্চিত শিশুদের শিক্ষার আওতায় আনতে ২০১৭ সালের নভেম্বরে এক হাজার ১০টি দারুল আরকাম মাদ্রাসা প্রতিষ্ঠা করা হয়। এসব প্রতিষ্ঠানে ইফার নিজস্ব সিলেবাস দ্বারা তৃতীয় শ্রেণি পর্যন্ত কার্যক্রম শুরু হলেও ২০২০ সালে তা পঞ্চম শ্রেণিতে উন্নীত হয়। এসব মাদ্রাসায় দেড় লাখ শিক্ষার্থী লেখাপড়ার সুযোগ পাচ্ছে।