লোহাগড়া থানা পুলিশের নানান আয়োজনে ৭ মার্চ পালিত

লোহাগড়া থানা পুলিশের নানান  আয়োজনে ৭ মার্চ পালিত

মো: আজিজুর বিশ্বাস,স্টাফ রিপোর্টার নড়াইল: নড়াইলের লোহাগড়া থানা পুলিশের আয়োজনে পালিত হলো ঐতিহাসিক ৭ মার্চ। 

এ উপলক্ষে রোববার বিকাল ৩ টায় লোহাগড়া থানা কমপ্লেক্স চত্বরে অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সৈয়দ আশিকুর রহমানের সভাপতিত্বে ও সাবেক ছাত্র নেতা রোমান রায়হানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নড়াইলের পুলিশ সুপার (প্রশাসন ও মিডিয়া) মো:রিয়াজুল ইসলাম। অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন উপজেলা চেয়ারম্যান এস এম এ হান্নান রুনু, উপজেলা নির্বাহী অফিসার রোসলিনা পারভীন,পৌর মেয়র আশরাফুল আলম, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি,মুন্সি আলাউদ্দিন আলা, সৈয়দ মশিয়ূর রহমান, লোহাগড়া প্রেসক্লাবের সভাপতি এ্যাডভোকেট আব্দুস সালাম খান, আ'লীগ নেতা কাজী বনি আমিন , মনজুরুল করিম মুন, আজাদ সিকদার, যুবলীগ নেতা শেখ সদর উদ্দিন শামীম সহ প্রমুখ। পরে অতিথিবৃন্দ কেক কাটেন । সন্ধ্যায় সরকারি পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় চত্বরে সাংস্কৃতিক অনুষ্টান অনুষ্ঠিত হয়।

৭ মার্চের ভাষনটি বাঙ্গালীর হৃদয়ে আবেগের সৃষ্টি করেছিল

৭ মার্চের ভাষনটি বাঙ্গালীর হৃদয়ে আবেগের সৃষ্টি করেছিল


মো. মিজানুর রহমান (মিজান),  দিনাজপুর প্রতিনিধিঃ অর্থ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী এমপি ভার্চুয়ালি পদ্ধতিতে বলেছেন, সারাদেশে বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে উন্নয়ন কার্যক্রম অপ্রতিরোধ্য অগ্রযাত্রায় এগিয়ে চলছে। বঙ্গবন্ধু নিপীড়িত, বঞ্চিত মানুষের অধিকার আদায়ে নিজের জীবনবাজি রেখে কাজ করে গেছেন। তাঁর ৭ মার্চের ঐতিহাসিক ভাষনটি বঞ্চিত বাঙ্গালীর হৃদয়ে জাতীয় আবেগের সৃষ্টি করেছিল। বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত আত্মজীবনী পড়ে মুক্তিযুদ্ধের গৌরবময় ইতিহাস জানতে হবে।
গতকাল ৭ মার্চ রোববার  সকাল ১০ টায় বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পণ পূর্বক সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আয়েশা সিদ্দীকার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে সহকারী কমিশনার (ভূমি) ইরতিজা হাসান, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও দিনাজপুর জেলা শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যক্ষ মোঃ আহসানুল হক মুকুল, থানার কর্মকর্তা ইনচার্জ সুব্রত কুমার সরকার, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান লায়লা বানু প্রমূখ বক্তব্য রাখেন। 
আলোচনা সভা শেষে ঐতিহাসিক ৭ মার্চ জাতীয় দিবস উদযাপন উপলক্ষ্যে বিভিন্ন প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণী ও মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে সকল কর্মকর্তা, ইউপি চেয়ারম্যান, সাংবাদিক, শিক্ষক, গণ্যমান্য ব্যাক্তিবর্গ, বীর মুক্তিযোদ্ধা ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সকল পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। অপরদিকে বিকেল ৩ টায় চিরিরবন্দর থানা চত্তরে থানার আয়োজনে দিবসটি উপলক্ষ্যে কেক কাটা, আলোচনা সভা ও মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

১৮ কোটি মানুষের ৩৬ কোটি হাতের সম্মিলিত প্রয়াসে আমাদের উন্নয়নশীল দেশে উত্তরণ ঘটেছে : আইজিপি

১৮ কোটি মানুষের ৩৬ কোটি হাতের সম্মিলিত প্রয়াসে আমাদের উন্নয়নশীল দেশে উত্তরণ ঘটেছে : আইজিপি

বেলাল উদ্দিন: রাজনীতির মহাকবি বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ ছিল বাঙালি জাতির হাজার বছরের শোষণ, বঞ্চনার ইতিহাস। তিনি তাঁর  ঐতিহাসিক ভাষণে সমগ্র বাঙালি জাতিকে ধারণ করেছিলেন। যার ফলশ্রুতিতে লক্ষ প্রাণের বিনিময়ে আমরা পেয়েছি একটি পতাকা, একটি স্বাধীন ভূখণ্ড। বাঙালি জাতির স্বপ্নদ্রষ্টা বঙ্গবন্ধুকে জানতে হবে, বঙ্গবন্ধুর চর্চা বাড়াতে হবে। আমাদেরকে ৭ মার্চ উদযাপন করতে হবে হাজার বছর ধরে।' 

ইন্সপেক্টর জেনারেল অব পুলিশ, বাংলাদেশ ড. বেনজীর আহমেদ বিপিএম (বার) ঐতিহাসিক ৭ মার্চ এবং বাংলাদেশ স্বল্পোন্নত দেশ হতে উন্নয়নশীল দেশে উত্তরণে জাতিসংঘের চূড়ান্ত সুপারিশপ্রাপ্তিতে দেশব্যাপী থানাসহ সকল পুলিশ ইউনিটে আনন্দ উদযাপনের অংশ হিসেবে ঢাকায় আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এ কথা বলেন। 

কেন্দ্রীয়ভাবে আজ রোববার বিকালে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) রাজারবাগে বাংলাদেশ পুলিশ অডিটোরিয়ামে এক আলোচনা সভার আয়োজন করে। ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার, কাউন্টার টেরোরিজম এন্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিটের প্রধান ও ভারপ্রাপ্ত পুলিশ কমিশনার মোঃ মনিরুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর কনক কান্তি বড়ুয়া, অতিরিক্ত আইজি (এএন্ডও) ড. মোঃ মইনুর রহমান চৌধুরী, সিআইডির অতিরিক্ত আইজি ব্যারিস্টার মাহবুবুর রহমান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক নিজামুল হক ভূঞা, চলচ্চিত্র অভিনেতা আলমগীর এবং ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার কৃষ্ণপদ রায় প্রমুখ বক্তব্য রাখেন। 

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু কখনো নিজেকে বিচ্ছিন্নতাবাদী নেতা হিসেবে উপস্থাপন কর‌নে‌নি। বরং যখন পাকিস্তানিরা আমাদের নিরীহ জনগণের ওপর হামলা করে আমাদের দেশের মানুষকে হত্যা করে নির্বিচারে, তখনই তিনি দৃঢ়‌চি‌ত্তে স্বাধীনতা ঘোষণা করেছেন। রাজনীতির সত্য উপলব্ধি করার জন্য আই‌জি‌পি জ্ঞানচর্চার আহবান জানান। 

তিনি বলেন, এক সময় দারিদ্র্য, অসুখ, অশিক্ষা ছিল আমাদের নিত্য সহচর। মানুষ ম্যালেরিয়া, কলেরা, টাইফয়েডে ভুগতো। অভাব ছিল নিত্যসঙ্গী। আজ দেশ কোথায় এসেছে ? এ যাত্রা সহজ ছিল না। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর দূরদর্শী নেতৃত্বে এ উন্নয়নের পেছনে আমাদের শ্রম, ঘাম রয়েছে, প্রতিজ্ঞা, প্রত্যয় রয়েছে। দেশের মানুষ অহর্নিশ পরিশ্রম করেছে। এ দেশের ১৮ কোটি মানুষের ৩৬ কোটি হাতের সম্মিলিত প্রয়াসের ফলে আমাদের এ বিজয় অর্জিত হয়েছে। 

তিনি বলেন, জাতি হিসেবে আমরা অনেক দূর এসেছি, আমাদের যেতে হবে বহুদূর। আমাদের স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উন্নয়নশীল দেশে উত্তরণ ঘটেছে। ২০৪১ সালে ধনী দেশে পরিণত হওয়ার মধ্য দিয়ে আমাদেরকে 'সোনার বাংলার' গর্বিত বন্দরে উপনীত হতে হবে। 

বাংলাদেশকে সামনের দিকে এগিয়ে নেয়ার প্রত্যয় বাস্তবায়নে সকলকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার আহবান জানান আইজিপি। 

তিনি বলেন, বাংলাদেশের উন্নয়নশীল দেশে উত্তরণ ঘটা দারিদ্র্যের শিকল ভাঙ্গার, আত্মমর্যাদার উৎসব। বাংলাদেশকে সামনে এগিয়ে নেয়ার প্রত্যয়। কোন নির্দিষ্ট দিনে নয়, প্রতিদিন এ উৎসব উদযাপন করতে হবে।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ডাক্তার কনক কান্তি বড়ুয়া তার বক্তব্যে বঙ্গবন্ধুর প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানিয়ে ৭ মার্চের ভাষণের প্রেক্ষাপট তুলে ধরেন। তিনি করোনাকালে পুলিশের প্রশংসা করে  বলেন, বর্তমান করোনায় পুলিশ ফ্রন্টলাইনার হিসেবে কাজ করেছে। 

অতিরিক্ত আইজি ড. মোঃ মইনুর রহমান চৌধুরী বলেন, বঙ্গবন্ধুর জন্ম না হলে আমরা এ দেশ পেতাম না।  তলাবিহীন ঝুড়ি থেকে দেশ এখন উন্নয়নের মহাসড়কে। পুলিশ সদস্যদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, জনসাধারণের সাথে  ভালো আচরণ করার চেষ্টা করতে হবে।

অনুষ্ঠানে সিআইডি প্রধান অতিরিক্ত আইজিপি ব্যারিস্টার মাহবুবুর রহমান বলেন,  বঙ্গবন্ধু ৭ মার্চ সাবলীলভাবে এক‌টি অনন্যসাধারণ ভাষণ দিয়েছেন। ৭ মার্চের ভাষণের ঐতিহাসিক তাৎপর্য রয়েছে। 

চিত্রনায়ক আলমগীর বলেন, সাতই মার্চের ভাষণে বঙ্গবন্ধু বলেছিলেন, 'আমাদের কেউ দাবায়া রাখতে পারবা না'। তার সুযোগ্য কন্যা শেখ হাসিনা সব প্রতিবন্ধকতা পেরিয়ে দেশকে উন্নয়নের দিকে নিয়ে যাচ্ছেন। 

সভাপতির বক্তব্যে মোঃ মনিরুল ইসলাম বলেন,  বাংলাদেশের যে অপ্রতিরোধ্য গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে তার ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে জঙ্গি নিয়ন্ত্রণসহ অপরাধ দমনে ডিএমপি কাজ করে যাবে। 

অনুষ্ঠানের শুরুতে দেশের উন্নয়ন ও অগ্রযাত্রার ওপর একটি প্রামাণ্যচিত্র প্রদর্শন করা হয়।

উমারপুর ইউনিয়ন আ'লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে সভাপতি রাজ্জাক ও সম্পাদক হেলাল উদ্দিন বিএসসি

উমারপুর  ইউনিয়ন আ'লীগের ত্রি-বার্ষিক   সম্মেলনে  সভাপতি রাজ্জাক ও সম্পাদক হেলাল উদ্দিন বিএসসি

 মোঃ শাকিল আহমেদ, বিশেষ   প্রতিনিধি:সিরাজগঞ্জের দুর্গম   চৌহালী উপজেলার  উমারপুর     ইউনিয়নে  প্রায় সাত বছর পর  উমারপুর  ইউনিয়ন আ'লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে  ৷  রবিবার   সকালে   দত্তকান্দি  কে এম বহুমুখী  উচ্চ  বিদ্যালয়ে মাঠে   আলহাজ্ব আব্দুল মতিন মন্ডলের     সভাপতি ও  সাধারণ সম্পাদক হেলাল উদ্দিন বিএসির  সঞ্চালনে   অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন , চৌহালী উপজেলা  আ'লীগের ( ভা:) সভাপতি আবু নজির মিয়া,   উপজেলা আ'লীগের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা  পরিষদের চেয়ারম্যান   মোঃ ফারুক হোসেন সরকার, সাবেক সভাপতি আলহাজ্ব হযরত আলী মাষ্টার , যুগ্ন সম্পাদনা তাজ উদ্দিন আহমেদ ,  উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মোল্যা বাবুল আক্তার  , উপজেলা আ'লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও ইউপি চেয়ারম্যান রমজান আলী ,  নব নির্বাচিত খাষকাউলিয়া ইউনিয়ন আ'লীগের সভাপতি আবু ছাইদ বিদ্যুত , স্বেচ্ছাসেবকলীগের  সাধারণ  সম্পাদক আরিফ সরকার ও ত্র্যাড: মনিরুল ইসলাম মানিক   প্রমুখ। এতে সভাপতি ২জন  ও সাধারণ সম্পাদক পদে ২জন    মোট প্রাথী ৪জন ৷  পরে ওয়ার্ড আ'লীগ ও ইউনিয়ন আ'লীগের পরোক্ষ ভোটে সভাপতি আব্দুর রাজ্জাক মোল্যা ও সাধারণ সম্পাদক হেলাল বিএসির নাম ঘোষনা করা হয় ৷

সিলেটের বিশ্বনাথে আনজুমানে আশিকানে মুস্তফা (সাঃ) পরিষদ-এর কাউন্সিল সম্পন্ন

সিলেটের বিশ্বনাথে আনজুমানে আশিকানে মুস্তফা (সাঃ) পরিষদ-এর কাউন্সিল সম্পন্ন

আব্দুল হালিম,বিশ্বনাথ(সিলেট) প্রতিনিধি:৭মার্চ(রবিবার) বাদ মাগরিব সিলেটের বিশ্বনাথ উপজেলার  বৃহত্তর প্রীতিগঞ্জ বাজারে আনজুমানে আশিকানে মোস্তফা সা: পরিষদের কার্যালয়ে মোঃ বায়েজীদ আহমেদের পরিচালনায় শুরু হওয়া অনুষ্ঠানে প্রধান কাউন্সিলর হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অত্র পরিষদের প্রতিষ্ঠাতা ও সৎপুর দারুল হাদিস কামিল(এম.এ) মাদরাসার (অবঃঅধ্যক্ষ) আলহাজ্ব মাওলানা শফিকুর রহমান সাহেব।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন প্রীতিগন্জ বাজার কমিটির সভাপতি মোঃ আব্দুল গফুর, মেঃ ফেরদৌসুর রহমান, পাকিছির,কছির আলি পাকিছিরি।

এ সময় সর্বসম্মতিক্রমে পুনরায় মাওলানা আব্দুল করিম কে সভাপতি ও মোঃ বায়েজীদ আহমেদ কে সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত করে বিগত কমিটিকে বর্ধিত করা হয়। 

কমিটির অন্যান্য সদস্যরা হলেন-
সিনিয়র সহ-সভাপতি মোঃ বিলাল হোসেন, সহ-সভাপতি মোঃ তারেক আহমেদ, সহ-সভাপতি মোঃ জয়নুল আবেদীন জয়, সহ-সভাপতি মাওঃ ফেরদৌসুর রহমান, সহ-সভাপতি মোঃ হাবিবুর রহমান, সহ সাধারণ সম্পাদক মোঃ জয়নাল আবেদীন, সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ সাজিদুর রহমান সেজু, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ ওয়াছির আলি, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক, মোঃ আক্তার হুসেন, অর্থ সম্পাদক মোঃ জামাল হুসেন, অফিস সম্পাদক হাঃমোঃ আব্দুল ফাত্তাহ নোমান, সহ-অফিস সম্পাদক মোঃ আব্দুস সালাম, প্রচার সম্পাদক মোঃ ইউসুফ আলী সুজন, সহ-প্রচার সম্পাদক মোঃ আব্দুল মতিন,শিক্ষা ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক মোঃ আবু বকর, সহ-শিক্ষা ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক মোঃ আল-আমীন সুমন, প্রশাসনিক সম্পাদক মোঃ বখতিয়ার আহমদ, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক মোঃ আব্দুল হালিম সহ- তথ্য সম্পাদক মোঃ জাকির হোসেন, সাহিত্য সম্পাদক মোঃ ইমরান আহমদ, নির্বাহি সদস্য শফিক খানঁ মোঃ মুহিবুর রহমান, আব্দুল আমিন,ছালেক আহমেদ। 
উক্ত অনুষ্ঠানে পরিষদের ২০২০ইং সনের হিসাব নিরীক্ষন ও করা হয়।পরিশেষে প্রিন্সিপাল হুজুরের দোয়ার মাধ্যমে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘটে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বীরশ্রেষ্ঠ মোস্তফা কামাল ফাউন্ডেশন এর উদ্যোগে সূর্য সন্তানের কবর যিয়ারত

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বীরশ্রেষ্ঠ মোস্তফা কামাল ফাউন্ডেশন এর উদ্যোগে সূর্য সন্তানের কবর যিয়ারত

মোঃ আওলাদ হোসেন, স্টাফ রিপোর্টার, দৌলতখান,ভোলাঃ গতকাল ৬ই মার্চ রোজ শনিবার বাংলার সোনার সন্তান, স্বাধীনতা যুদ্ধের সম্মুখ যোদ্ধা শহীদ সিপাহী বীরশ্রেষ্ঠ মোস্তফা কামালের মাজার যিয়ারত করেছেন দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে আগত শহীদ সিপাহী বীরশ্রেষ্ঠ মোস্তফা কামাল ফাউন্ডেশনের সদস্য বৃন্দ। 
অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন এটি একটি সম্পূর্ণ অলাভজনক স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন।এই সংগঠনের মূল কাজ হলো দেশের আপামর জনগনের কাছে স্বাধীনতার স্বার্বোভৌমত্বের চেতনা জাগিয়ে তোলা।দেশের অনগ্রসর মানুষকে উন্নত করে তুলা।পিছিয়ে পরা জনগোষ্ঠীকে জাগিয়ে তুলা সহ ব্যাপক স্বেচ্ছাসেবা মূলক কাজ।
ফাউন্ডেশনের মহাসচিব বলেন,এর পর থেকে বীরশ্রেষ্ঠ মোস্তফা কামালের নামে কোন ধরনের ফিল্ম বা ডকুমেন্টারি বানাতে চাইলে শহীদ সিপাহী বীরশ্রেষ্ঠ মোস্তফা কামাল ফাউন্ডেশনের সাথে ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সাথে আলাপ আলোচনা করার ভিত্তিতে করবেন।
ফাউন্ডেশনের সেক্রেটারি জেনারেল বলেন,এটি একটি স্বচ্ছ, নিরপেক্ষ ও দূর্নীতি মুক্ত সংগঠন হিসেবে আমরা বিশ্বের দরবারে এটাকে দ্বার করাবো ইনশাআল্লাহ!  এখানে কোন সদস্য কোন ধরনের লোভনীয় চিন্তা করলে দয়া করে আমরা বহিষ্কার করার আগে আপনি নিজেই স্বেচ্ছায় বহিষ্কার হন।কারন এখানে কোন ধরনের লোভনীয় ও দূর্নীতি টিকবে না। 
শনিবার অনুষ্ঠিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার আখাউড়া উপজেলার মোগরা ইউনিয়নের দরুইন গ্রামে অবস্থিত বীরশ্রেষ্ঠ মোস্তফা কামালের সমাধি প্রাজ্ঞনে আয়োজিত দোয়া ও আলোচনা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন অত্র ফাউন্ডেশনের সম্মানিত চেয়ারম্যান ও বীরশ্রেষ্ঠ মোস্তফা কামালের আপন ভাই মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান, ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালক মোঃ কবির নূমান,সভাপতি মোঃ মিজানুর রহমান ভোলা জেলা শাখা, ভোলা জেলা শাখার সেক্রেটারী জেনারেল মোঃ শাহিন আলম, ভোলা জেলা শাখার দায়িত্বশীল কর্মকর্তা বৃন্দ, দৌলতখান উপজেলা শাখার সদস্য মোঃ ফয়েজ খোকন,মোঃ আওলাদ হোসেন, মোঃ দিদার,মোঃ সোহাইল আলম,মোঃ মমিন হোসেন, মোঃ মাজহারুল ইসলাম,মোঃ বশির,মোঃ আমানউল্লাহ ও  দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে আগত সদস্য বৃন্দ প্রমুখ।

আশাশুনিতে নানা আয়োজনে জাতীয় ঐতিহাসিক ৭ মার্চ পালন

আশাশুনিতে নানা আয়োজনে জাতীয় ঐতিহাসিক ৭ মার্চ পালন

 আহসান উল্লাহ বাবলু,  আশাশুনি সাতক্ষীরা প্রতিনিধিঃ আশাশুনিতে নানা আয়োজনে জাতীয় ঐতিহাসিক ৭ মার্চ পালিত হয়েছে। দিবসটি উপলক্ষে রোববার সকালে আশাশুনি উপজেলা পরিষদের পক্ষ থেকে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এ বি এম মোস্তাকিমের নেতৃত্বে উপজেলা পরিষদ ও নবাগত আশাশুনি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নাজমুল হুসাইন খাঁন এর নেতৃত্বে উপজেলা প্রশাসন, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠন, বিভিন্ন সামাজিক সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠান জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ করেন। বেলা ১১ টায় আশাশুনি সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের অডিটোরিয়ামে প্রজেক্টরের মাধ্যমে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক ৭ মার্চ'র ভাষন সম্প্রচার করা হয়। দুপুরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নাজমুল হুসাইন খাঁনের সভাপতিত্বে বঙ্গবন্ধুর স্মৃতিচারণ করে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।
আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির  বক্তব্যে আশাশুনি উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এ বি এম মোস্তাকিম বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ১৯৭১ সালের ঐতিহাসিক ৭ মার্চের ভাষণে বাঙালির অধিকার বাংলাদেশের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্বের ঘোষণা দেন।ঐতিহাসিক ৭ মার্চ জাতীয় ভাবে পালিত হওয়ায় তিনি প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনাকে অভিনন্দন জানান। সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আব্দুল হান্নান এর সঞ্চালনায় এসময় বক্তব্য রাখেন ও উপস্থিত ছিলেন, সহকারি কমিশনার (ভূমি) শাহিন সুলতানা, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান অসিম বরণ চক্রবর্তী ও মোসলেমা খাতুন মিলি, অধ্যক্ষ মিজানুর রহমান, স্বাস্থ্য ও পঃপঃ কর্মকর্তা ডা. সুদেষ্ণা সরকার, উপজেলা প্রকৌশলী আক্তার হোসেন, আশাশুনি সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আশরাফুন্নাহার নার্গিস, সদর ইউপি চেয়ারম্যান স,ম সেলিম রেজা মিলন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুস সামাদ বাচ্চু, মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শিক্ষক সেলিনা আক্তার প্রমূখ। আলোচনা সভা শেষে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, কবিতা আবৃতি, শিশুদের চিত্রাংকনসহ বিভিন্ন ইভেন্টে প্রতিযোগীতায় বিজয়ীদের মাঝে পুরষ্কার বিতরণ করা হয়।

শ্যামনগর মুন্সীগঞ্জে কথিত দালাল সিরাজুলের বিরুদ্ধে এলকাবাসীর মানববন্ধন

শ্যামনগর মুন্সীগঞ্জে কথিত দালাল সিরাজুলের বিরুদ্ধে এলকাবাসীর মানববন্ধন

হুদা মালী, শ্যামনগর প্রতিনিধি : সাতক্ষীরা,শ্যামনগর উপজেলার মুন্সীগঞ্জ দক্ষিণ কদমতলার কথিত দালাল বাটপার সাংবাদিক পরিচয় দানকারি সিরাজুল ইসলামের বিরুদ্ধে মানববন্ধন করেছে এলাকাবাসী।(৭ই মার্চ) রবিবার বিকাল ৫ টায় হরিনগর বাজারে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। 

মানববন্ধনে এলাকবাসীর পক্ষ থেকে রাসেল মাহমুদ বলেন, বাটপার সিরাজুল ইসলাম এলাকার অসহায় মানুষের সরকারি বিভিন্ন সুবিধা দেওয়ার নাম করে। টাকা উত্তোলন থেকে বিভিন্ন রাজনৈতিক নেতাদের পরিচয়ে নাম ভাঙ্গিয়ে অপরাধ মূলক কাজ করে থাকে।

 মানুষকে হয়রানি মূলোক বিভিন্ন বিপদে ফেলানোর ভয় দেখিয়ে।মোটা অংকের অর্থ হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগও রয়েছে ।তাছাড়া বয়স্ক, বিধবা ভাতার কার্ড করে দেওয়ার নামে একাধিক ব্যক্তির কাছ টাকা নেওয়ার  অভিযোগ রয়েছে। 

ভুক্তভোগী মাছুম বিল্লাহ বলেন, আমার কাছ থেকে শিশু মাতার কাড দেওয়ার  নাম করে ৬ হাজার টাকা নেয়।এছাড়া একাধিক ব্যক্তি বলেন, দালাল সিরাজুল অনেক অসহায় পরিবারকে মিথ্যা ভাবে নাশকাতা মামলা দিয়ে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নেয়।

যার এক সময় কোন কিছু ছিলনা সে এখন আলিশান বাড়ির মালিক। এ মানববন্ধনে বিভিন্ন অপকমের্র হোতা সিরাজুল ইসলামের তদন্তের মাধ্য দিয়ে। সাতক্ষীরা ৪ আসনের এমপি এস এম জগলুল হায়দার ও  প্রশাসনের মাধ্যমে সঠিক বিচার দাবি করেন।

মোংলায় আসছে ভারতীয় দুইটি যুদ্ধ জাহাজ

মোংলায় আসছে ভারতীয় দুইটি যুদ্ধ জাহাজ

মোঃএরশাদ হোসেন রনি,মোংলা: তিন দিনের সফরে ৮ মার্চ সোমবার ভারতের দুটি যুদ্ধ জাহাজ মোংলায় আসছে। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন উপলক্ষ্যে ভারতীয় নৌ বাহিনীর 'আই এন এস কুলিশ' ও 'সুমেদা' নামে এ দুটি যুদ্ধ জাহাজ মোংলা নৌ ঘাঁটিতে এসে পৌছাবে। খুলনার নৌ ঘাঁটি থেকে পাঠানো আইএসপিআরের (আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তর) এক প্রেস বার্তায় এ তথ্য নিশ্চিত করা হয়েছে। 
প্রেস বার্তায় বলা হয়েছে, জাহাজ দুটিকে স্বাগত জানানোর সময় বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতীয় হাই কমিশনের প্রতিনিধিসহ বাংলাদেশে নৌ বাহিনীর উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তারা উপস্থিত থাকবেন। ১৮ জন কর্মকর্তা ও ১৬০ জন নাবিকসহ ভারতীয় নৌ বাহিনীর জাহাজ 'কুলিশ' এর নেতৃত্বে আছেন কমান্ডার সঞ্জীব অগ্নিহোত্রি এবং ২০ জন কমকর্তা ও ১৩০ জন নাবিকসহ অপর যুদ্ধ জাহাজ 'সুমেদা'র নেতৃত্বে আছেন কমান্ডার গৌরব দুর্গাপাল। 
এদিন সফরে থাকা ভারতীয় নৌবাহিনীর উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তা কমডোর মহাদেভু গোভেরধান রাজু টুঙ্গিপাড়াস্থ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সমাধি সৌধে শ্রদ্ধা নিবেদন এবং বীর শ্রেষ্ঠ রুহুল আমিনের সমাধিস্থলে পুস্পস্তবক অর্পন করবেন। এছাড়া মোংলা নৌ ঘাঁটিসহ খুলনার দর্শনীয় স্থান পরিদর্শনও করবেন তিনি। 

৭ই মার্চকে ঐতিহাসিক দিবস ঘোষণা, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা

৭ই মার্চকে ঐতিহাসিক দিবস ঘোষণা, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা

১৯৫২ থেকে শুরু করে ১৯৬২, ৬৬, ৬৯ এর আন্দোলন এবং সবশেষে ১৯৭০ সালের নির্বাচনে আওয়ামী লীগের নিরঙ্কুশ বিজয়ের পরও পশ্চিম পাকিস্তানের ষড়যন্ত্রে সারাদেশ যখন উত্তাল, সেই অস্থির সময়ে বঙ্গবন্ধু জানালেন তাঁর স্থির ও দূরদর্শী সিদ্ধান্ত যা ছিল হাজার বছরের বাঙালির প্রাণের স্বপ্ন।

বঙ্গবন্ধুর সেই ৭ই মার্চের ভাষণ আমাদের স্বাধীনতার অমোঘমন্ত্র, বাঙালি জাতির শ্রেষ্ঠতম কবিতা। ১৯৭১ সালের ৭ই মার্চ মাত্র ১৯ মিনিটের এই কালজয়ী ভাষণে বঙ্গবন্ধু সারা দেশের মানুষকে এক সুতোয় গেঁথে দিয়েছিলেন। তাঁর সেই আবেগতপ্ত ভাষণ বাঙালি জাতির মর্মমূলে ছড়িয়ে দিয়েছিল মুক্তির স্বপ্ন, সংগ্রামের সুদৃঢ় প্রতিজ্ঞা। এই স্বপ্ন ও সাহস বুকে নিয়েই বাংলার স্বাধীনতাকামী মানুষ জীবন-রক্ত-সম্ভ্রম দিয়ে স্বাধীন করেছেন দেশ। বঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের ভাষণ তাই বাংলাদেশ রাষ্ট্রে ভিত্তিমূল, উজ্জ্বল প্রেরণাভূমি।
কিন্তু ১৯৭৫-পরবর্তী বাংলাদেশে বারবার ইতিহাসের বিকৃতি ঘটেছে। নতুন প্রজন্মের কাছে প্রকৃত ইতিহাস লুকিয়ে রেখে মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে তারা ধূলিস্যাৎ করার ঘৃণ্য অপচেষ্টা চালিয়েছে। অপচেষ্টা প্রতিরোধ করার জন্য প্রয়োজন দেশের সর্বস্তরে বিশেষত নতুন প্রজন্মের সামনে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা তুলে ধরা। মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বাংলাদেশ গড়তে হলে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় প্রজন্ম গড়ে তুলতে হবে। চেতনার এই অবকাঠামো নির্মাণ যত দৃঢ় হবে, উন্নয়নের অবকাঠামো তত টেকসই হবে। আর এ ক্ষেত্রে ৭ই মার্চের ভাষণের চর্চা ও সম্প্রসারণ এক অনিবার্য প্রসঙ্গ।

বঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের ভাষণ চর্চার মাধ্যমে নতুন প্রজন্মকে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিকশিত করার লক্ষে ২০১৭ সালে ময়মনসিংহের ভালুকায় ৭ই মার্চের ভাষণ নিয়ে ভাষণ উৎসবের আয়োজন করা হয়। চার শতাধিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ৭ই মার্চের ভাষণের সিডি ও মুদ্রিত পাঠ বিতরণ করা হয়। একইসাথে জেলা প্রশাসক, ময়মনসিংহ বরাবর যথাযথ কর্তৃপক্ষ কর্তৃক অনুমোদনের লক্ষে ৭ই মার্চের ভাষণকে 'জাতীয় ভাষণ' এবং ৭ই মার্চকে 'জাতীয় ভাষণ দিবস' ঘোষণা করার অনুরোধ সম্বলিত চিঠি প্রেরণ করা হয়। ইউনেস্কো কর্তৃক ২০১৭ সালের ৩০ অক্টোবর বঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের ভাষণকে 'বিশ্ব ঐতিহ্যের দলিল' হিসেবে স্বীকৃতি দেয়ার ১০ মাস আগে এ অনুরোধপত্র প্রেরণ করা হয়েছিল। বঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের ভাষণ লক্ষাধিক শিক্ষার্থীর চর্চা করার সুযোগ সৃষ্টি, বঙ্গবন্ধুর অনুকরণে ভাষণ দেয়ার চেষ্টা, প্রতিবছর ৭ই মার্চের ভাষণ উৎসবের আয়োজন প্রশাসনের পৃষ্ঠপোষকতায় বাংলাদেশে প্রথম আয়োজন।

বঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের ভাষণ নিয়মিত চর্চা, হাজারো শিক্ষার্থীর ১৯ মিনিটের ভাষণ পুরোপুরি মুখস্থ বলতে পারা এবং বিশেষ করে ছাত্রীরা যেভাবে ভাষণটি চর্চা করেছে এবং ভাষণ উৎসবে প্রথম হয়েছে তা সারা বাংলাদেশে দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে। অনন্য এ উদ্যোগের জন্য ২০১৮ সালে তৎকালীন উপজেলা নির্বাহী অফিসার জনাব মো. কামরুল আহসান তালুকদার ব্যক্তিগত শ্রেণীতে জাতীয় জনপ্রশাসন পদক লাভ করেন।
১৫ অক্টোবর, ২০২০ তারিখে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের ৬২৫ নং স্মারকের মাধ্যমে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কর্তৃক ১৯৭১ সালের ৭ই মার্চে প্রদত্ত ভাষণের দিনটিকে ঐতিহাসিক দিবস হিসেবে ঘোষণা এবং দিবসটিকে 'ক' শ্রেণীভুক্ত হিসেবে ঘোষণা করে। দূরদর্শী এ সিদ্ধান্তের জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে জানাই আন্তরিক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা।

বঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের ভাষণ যেমন সেকালের বাঙালিকে আবেগে-সংগ্রামে-সাহসে প্লাবিত করেছে, তেমনি আজও এই ভাষণ যেকোনো অন্যায়ের প্রতিবাদে সোচ্চার করে তোলে। বিশ্বের যেকোনো দেশের মুক্তি সংগ্রামে এই ভাষণ তাই প্রেরণার অনির্বান শিখা। আর এ কারণেই ৭ই মার্চের স্বীকৃতি পরম আনন্দের এবং গর্বের। ভালুকার ৫ লাখ মানুষ আর লক্ষাধিক ছাত্র-ছাত্রীর হৃদয়ের গহ্বরে লুকায়িত স্বপ্ন এবং প্রত্যাশার বাস্তবায়নের জন্য ভালুকার সর্বস্তরের জনগণের পক্ষ থেকে বঙ্গবন্ধু কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা। ৭ মার্চের ভাষণ অনুশীলন ছড়িয়ে পড়ুক দিগন্ত থেকে দিগন্তে। মহাকালের তর্জনীর ইশারায় আজও আমরা সকল রক্তচক্ষুকে মোকাবিলার শক্তি, সাহস সঞ্চয় করি। ৭ মার্চ আমাদের অনন্ত প্রেরণার বসন্ত বাতাস।

লেখক: মোঃ কামরুল আহসান তালুকদার ,   উপসচিব, পানি সম্পদ উপমন্ত্রীর একান্ত সচিব

নওগাঁর পোরশায় ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ উদযাপন

নওগাঁর পোরশায় ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ উদযাপন


মোঃ ফিরোজ হোসাইন ,রাজশাহী ব্যুরো:নওগাঁর পোরশায়   উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ দিবস ২০২১ যথাযোগ্য মর্যাদায় উদযাপন করা হয়েছে।

আজ রবিবার  জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ ভাষণের গুরুত্ব এবং তাৎপর্য তুলে ধরে আলোচনা সভা করা হয়, ও বীর মুক্তিযোদ্ধা সমাবেশ খাদ্য মন্ত্রী বীর মুক্তিযোদ্ধা জনাব সাধন চন্দ্র মজুমদার এমপি,কল কনফারেন্সে যুক্ত হয়ে দিক নিদের্শন মুলক বক্তব্য রাখেন। পরে পুরস্কার বিতরণী ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্যদিয়ে দিবসটি উদযাপন করা হয়।
 উপস্থিত ছিলেন,উপজেলা নির্বাহী অফিসার নাজমুল হামিদ রেজা'এর সভাপতিত্বে  আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়,বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন,উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব শাহ মঞ্জুর  মোর্শেদ চৌধুরী, ভাইস চেয়ারম্যান কাজিবুল ইসলাম,কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ মাহফুজ আলম,মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার ওজেদ আলী মৃদা,প্রেসক্লব সভাপতি হাবিবুর রহমান হাবিব, সাবেক প্রধান শিক্ষক আঃ খালেক, মুক্তিযোদ্ধা  উপজেলার বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা কর্মচারী, বীর মুক্তিযোদ্ধা, শিক্ষক, শিক্ষার্থী সহ আরো অনেকেই উপস্থিত ছিলেন।

নওগাঁর আত্রাইয়ে ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ উপলক্ষে উপজেলা প্রশাসনের নানা কর্মসূচি পালন

নওগাঁর আত্রাইয়ে ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ উপলক্ষে উপজেলা প্রশাসনের নানা কর্মসূচি পালন

মোঃ ফিরোজ হোসাইন,রাজশাহী ব্যুরো:নওগাঁর আত্রাইয়ে উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের দেওয়া ঐতিহাসিক ৭ই মার্চের ভাষণ উপলক্ষে কর্মসূচি পালিত হয়েছে।

রোববার সকালে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. ইকতেখারুল ইসলাম এর সভাপতিত্বে উপজেলা প্রশাসন, উপজেলা পরিষদ, আত্রাই থানা, মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড, আওয়ামী লীগ এবং অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুস্পস্তবক অর্পণ করেন।

এসময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এবাদুর রহমান প্রামানিক, ওসি আবুল কালাম আজাদ, যুব উন্নয়ন অফিসার ফজলুল হক, মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার আব্দুস ছালাম, তদন্ত ওসি মোজাম্মেল হক, আথলীগ সভাপতি নৃপেন্দ্রনাথ দত্ত দুলাল, সাধারণ সম্পাদক আক্কাছ আলী, আত্রাই প্রেসক্লাব সভাপতি মোঃ রুহুল আমীন, বীর মুক্তিযোদ্ধা আখতারুজ্জামান ও সাজেদুর রহমান দুদু প্রমুখ।

পরে উপজেলা পরিষদ হল রুমে আলোচনা শেষে স্কুল কলেজের ছাত্র-ছাত্রীদের অংশগ্রহনে রচনা ও বঙ্গবন্ধু ভাষন প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করা হয়। সম্পাদনা করেন উপজেলা একাডেমিক সুপারভাইজার প্রদীপ কুমার সরকার।

তাহিরপুরে ১৯৭১ সালের ৭ই মার্চের ভাষন এর উপর রচনা প্রতিযোগিতা,বক্তৃতা প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত

তাহিরপুরে ১৯৭১ সালের ৭ই মার্চের ভাষন এর উপর রচনা প্রতিযোগিতা,বক্তৃতা প্রতিযোগিতা  অনুষ্ঠিত

আবু সায়েম সুনামগঞ্জ প্রতিনিধিঃ তাহিরপুর উপজেলার আওতাধীন বড়দল (দঃ) ইউনিয়নের কাউকান্দি উচ্চ বিদ্যালয়ে হাজার বছরের শ্রেষ্ট বাঙ্গালী,বাঙ্গালী জাতীর পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজীবুর রহমান এর ১৯৭১ইং সালের ৭ই মার্চের ভাষন শরণে রেখে এর উপর রচনা প্রতিযোগিতা,বক্তৃতা প্রতিযোগিতা ও আলোচনা অনুষ্টিত হয়।
উক্ত অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন অত্র বিদ্যালয়ের ম্যনেজিং কমিটির মাননীয় সভাপতি জনাব আলহাজ আবুল কালাম এবং অত্র অনুষ্টানে উপস্হিত ছিলেন অত্র বিদ্যালয়ের শিক্ষানুরাগী সদস্য জনাব মোঃ সাবাব মিয়া ও ,অত্র বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জনাব মোঃ আমিরুল ইসলাম, বীর মুক্তিযোদ্ধা ইসমাইল , এডঃ মনির আহমদ জজকোড সুনামগঞ্জ ,সহঃ শিঃ মোঃ আব্দুর রব,সহঃ শিঃ আজহারুল ইসলাম, সহঃ শিঃ মোঃ গোলাম মনির,সহঃ শিঃ মোঃ জুনায়েদ আলম,সহঃ শিক্ষীকা মোছাঃ নাসিমা আক্তার ও অফিস সহঃ মোঃ মচ্ছদর আলী।
অনুষ্টানের রচনা প্রতিযোগিতার ও বক্তৃতা প্রতিযোগিতার বিজয়ি ছাত্র/ ছাত্রীদের মধ্যে পুরুস্কার বিতরণ করেন সভাপতি ও শিক্ষানুরাগী সদস্যগন।
উপস্হিত বক্তৃতা দেন অত্র বিদ্যালয়ের সভাপতি আলহাজ আবুল কালাম তিনি বলান  বঙ্গবন্ধুর ১৯৭১ সালের ৭ই মার্চের ভাষণ আমাদের স্বাধীনতা সংগ্রামে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছিল। অসাধারণ এই ভাষণের মাধ্যমে বঙ্গবন্ধু জাতিকে স্বাধীনতার পথ নিদের্শনা দিয়েছেন। তাঁর এ ভাষণ আমরা চিরকাল স্মরণ করবো।

মধুপুর থানা পুলিশের আয়োজনে ঐতিহাসিক ৭ মার্চ উপলক্ষে আনন্দ উদযাপন অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত

মধুপুর থানা পুলিশের আয়োজনে ঐতিহাসিক ৭ মার্চ উপলক্ষে আনন্দ উদযাপন অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত

আঃ হামিদ মধুপুর( টাঙ্গাইল) প্রতিনিধিঃউৎসাহ ও উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে টাঙ্গাইলের মধুপুরে ঐতিহাসিক ৭ মার্চ উপলক্ষে আনন্দ উদযাপন অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে। 
রবিবার বিকেল ৩ টার দিকে বাংলাদেশ পুলিশের আয়োজনে মধুপুর থানা চত্বরে বাংলাদেশ এলডিসি থেকে উন্নয়নশীল দেশে উত্তোরণে জাতিসংঘের চুড়ান্ত সুপারিশ প্রাপ্তিতে উক্ত আনন্দ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠনের সূচনা লগ্নে কেক কর্তনের মধ্যে দিয়ে অনুষ্ঠান আরম্ভ করা হয়। 
এসময় থানার অফিসার ইনচার্জ তারিক কামাল এর   সভাপতিত্বে এবং এস, আই, আল আমিনের সন্চালনায়  প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আরিফা জহুরা। এসময় উপস্হিত ছিলেন  সহকারী পুলিশ কমিশনার মধুপুর( সার্কেল) শাহিনা আক্তার ,উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি খন্দকার শফিউদ্দিন মনি, মধুপুর পৌরসভার মেয়র আলহাজ সিদ্দিক হোসেন খান, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান শরিফ আহমেদ নাছির, মহিলা ভাইসচেয়ারম্যান যষ্ঠিনা নকরেক, উপজেলা আওয়ামীগের সহ-সভাপতি সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান  আব্দুল গফুর মন্টু, সহ-সভাপতি ডাঃমীর ফরহাদুল আলম মনি, সহ- সভাপতি এডঃ ইয়াকুব আলী, সহ- সভাপতি বাপ্পু সিদ্দিকী, সাংগঠনিক সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ, শহীদ স্মৃতি উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ বজলুর রশিদ খান চুন্নু, পল্লী বিদ্যুৎতের ডিজিএম বিপ্লব কুমার সরকার, মুক্তিযোদ্ধাগন সহ বিভিন্ন ইউনিয়নের চেয়ারম্যানগন, পৌর কাউন্সিলর গন, ইউপি সদস্যগন , সাংবাদিকবৃন্দ, আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ সহ বিভিন্ন শ্রমিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ,  থানার সকল অফিসার গন উপস্হিত ছিলেন। পরে সন্ধায় এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

কবি নজরুল উচ্চ বিদ্যালয়ের উদ্যোগে ঐতিহাসিক ৭ ই মার্চ পালিত

কবি নজরুল উচ্চ বিদ্যালয়ের উদ্যোগে ঐতিহাসিক ৭ ই মার্চ পালিত

হাসান সাদী,নাগরপুর প্রতিনিধি:নাগরপুরে কবি নজরুল উচ্চ বিদ্যালয়ের উদ্যোগে ঐতিহাসিক ৭ মার্চ  উদযাপন উপলক্ষ্যে আলোচনা সভা,কবিতা,বক্তব্য ও ঐতিহাসিক ৭ ই মার্চের বজ্ঞবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাষন প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়।

 আজ রবিবার, ৭ মার্চ ২০২১ খ্রি. রবিবার ঐতিহ্যবাহী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কবি নজরুল উচ্চ বিদ্যালয়ে সকাল ১০.০০ টায় বিদ্যালয়ের হল রুমে  অনুষ্ঠিত হয়। 

ঐতিহাসিক ৭ মার্চের অনুষ্ঠানে অত্র বিদ্যালয় এর সম্মানিত প্রধান শিক্ষক মো.মাহফুজুর রহমানের সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন বিদ্যালয়ের সহকারি  প্রধান শিক্ষক মো.মোন্নাফ মিয়া,সহকারি শিক্ষক আবুল বাশার,জাহাংগীর আলম,রাখাল চন্দ্র,মাওলানা আ.হাকিম,শারমিন আক্তার,মোছা.ফেরদৌসি আক্তার দেলোয়ার হোসেন,মো.মাসুম,সন্জয় কুমার বিশ্বাস,আ.ওহাব,এম.এ.মান্নান প্রমুখ।

নাগরপুর উপজেলা প্রশাসন কর্তৃক যথাযোগ্য মর্যাদায় ঐতিহাসিক ৭ মার্চ পালিত

নাগরপুর উপজেলা প্রশাসন কর্তৃক যথাযোগ্য মর্যাদায়  ঐতিহাসিক ৭ মার্চ পালিত

ডা.এম.এ.মান্নান,টাংগাইল, জেলা প্রতিনিধি: টাঙ্গাইল নাগরপুরে বিভিন্ন কর্মসূচি পালনের মধ্য দিয়ে নাগরপুরের সর্বস্বরের মানুষের অংশগ্রহনে নাগরপুর উপজেলা কর্তৃক ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ যথাযোগ্য মর্যাদায় পালিত হয়েছে। 
 
আজ রোববার, ৭ মার্চ ২০২১ খ্রি. সকাল ১১.৩০ টায় উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে উপজেলা প্রশাসনের কর্তৃক  উপজেলা নির্বাহী অফিসার সিফাত-ই জাহানের সভাপতিত্বে ও  এটিও জি.এম ফুয়াদ মিয়ার পরিচালনায় ৭ই মার্চের বিশেষ কুইজ প্রতিযোগিতা, আলোচনা সভা ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে।

এসময় উপস্থিত ছিলেন-সহকারী কমিশনার (ভ‚মি) তারিন মশরুর, নাগরপুর থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ আনিছুর রহমান, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান হুমায়ুন কবির, উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ছামিনা বেগম শিপ্রা, বীর মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার (সাবেক) মোঃ সুজায়েত হোসেন, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মনিরুজ্জামান, বিভিন্ন রাজনৈতিক নেত্রীবৃন্দ সহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক/ শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।

মুক্তিযোদ্ধা সম্মাননাসহ নানা আয়োজনে নোবিপ্রবিতে ৭ই মার্চ উদযাপন

মুক্তিযোদ্ধা সম্মাননাসহ নানা আয়োজনে নোবিপ্রবিতে ৭ই মার্চ উদযাপন

নোবিপ্রবি প্রতিনিধিঃনোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (নোবিপ্রবি) যথাযোগ্য মর্যাদায় 'জাতীয় ঐতিহাসিক দিবস' ৭ই মার্চ উদযাপন করা হয়েছে। 

এ উপলক্ষে রবিবার (৭ই মার্চ) বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে জাতীয় পতাকা উত্তোলন, সম্মিলিতভাবে দাঁড়িয়ে ৭ই মার্চের ভাষণ শ্রবণ, আলোকচিত্র প্রদর্শনী, চিত্রাঙ্কন  প্রতিযোগিতা, প্রামাণ্যচিত্র প্রদর্শনী, জাতীয় সংগীত পরিবেশন, স্মরণিকা 'সেই থেকে স্বাধীনতা'র মোড়ক উন্মোচন ও বিতরণ, বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক আলোচনা ও বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মাননা প্রদান অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

সূর্যোদয়ের সাথে সাথে জাতীয় পতাকা উত্তোলনের মধ্য দিয়ে দিবসের কর্মসূচি শুরু হয়। কর্মসূচির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. দিদার-উল-আলম সকাল ৯ টায় সম্মিলিতভাবে দাঁড়িয়ে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক ৭ই মার্চের ভাষণ শ্রবণ এবং দেশাত্মবোধক গান পরিবেশন করা হয়। পরে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের করা হয়। শোভাযাত্রাটি ক্যাম্পাসের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণের মধ্য দিয়ে শেষ হয়। পরে বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. মো. ফারুক উদ্দিনের সভাপতিত্বে ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ ও মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় প্রধান অতিথি বক্তব্যে  বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোঃ দিদার-উল-আলম বলেন, 'বিশ্বের প্রামাণ্য ঐতিহ্য বঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের ভাষণ প্রদানের এই জাতীয় ঐতিহাসিক দিবসে জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মাননা দিতে পেরে আমরা নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ই সম্মানিত হয়েছি। বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মান প্রদান ও তাঁদের স্মৃতিচারণ আগামী প্রজন্মকে শোনানোর এই উদ্যোগ আমরা অব্যাহত রাখব।

সভায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. নেওয়াজ মোহাম্মদ বাহাদুর, সাধারণ সম্পাদক মো. মজনুর রহমান, আইআইএস এর পরিচালক ড. ফিরোজ আহমেদ, রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) মো.জসীম উদ্দিন, অফিসার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি সাখাওয়াত হোসেন, সাধারণ সম্পাদক মেজবাহ উদ্দিন ও কর্মচারীদের পক্ষে টিটু চন্দ্র দাস প্রমুখ। 

আমন্ত্রিত অতিথিদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বীর বিক্রম খেতাব প্রাপ্ত বীর মুক্তিযোদ্ধা ক্যাপ্টেন আবুল হাশেম, শহীদ সার্জেন্ট জহুরল হকের বোন হাসিনা আক্তার, বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. ওমর ফারুক, সুধারাম থানার কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল কালাম আজাদ, সাবেক নোয়াখালী জেলা কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা মমতাজুল করিম বাচ্চু, মুক্তিযোদ্ধা সন্তানদের পক্ষে বক্তব্য রাখেন বীর মুক্তিযোদ্ধা আলী আহমেদ চৌধুরীর ছেলে জহিরুদ্দিন বাবর, সাবেক নোয়াখালী জেলা কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা মোজাম্মেল হক মিলন, সাবেক জেলা কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা এবিএম নাজমুল হক বাদল, সাবেক জেলা কমান্ডার মো. মিজানুর রহমান।

সভায় বীর মুক্তিযোদ্ধা মিয়া মোহাম্মদ শাহজাহানসহ আমন্ত্রিত অন্য মুক্তিযোদ্ধারা উপস্থিত ছিলেন। এছাড়া উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন অনুষদের ডিন, ইনস্টিটিউটের পরিচালক,  বিভিন্ন বিভাগের চেয়ারম্যান, হলের প্রভোস্ট, শিক্ষক সমিতি ও অফিসার্স অ্যাসোসিয়েশনের নেতারাসহ ছাত্র-শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারী। আলোচনাসভা শেষে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মাননা প্রদান, মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, মঞ্চ নাটক ও চলচ্চিত্র প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত হয়।

তেঁতুলিয়া মডেল থানায় ঐতিহাসিক ৭মার্চ ও বাংলাদেশে এলডিসি থেকে উন্নয়নশীল দেশে উত্তরণে জাতিসংঘের সুপারিশপ্রাপ্তীতে আনন্দ উদযাপন

তেঁতুলিয়া মডেল থানায় ঐতিহাসিক ৭মার্চ ও বাংলাদেশে এলডিসি থেকে উন্নয়নশীল দেশে উত্তরণে জাতিসংঘের সুপারিশপ্রাপ্তীতে আনন্দ উদযাপন

সাব্বির হোসেন রকি,তেঁতুলিয়া (পঞ্চগড়) প্রতিনিধিঃ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৭ মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণ স্মরণে ও বাংলাদেশের এলডিসি থেকে উন্নয়নশীল দেশে উত্তরণে জাতিসংঘের চূড়ান্ত সুপারিশ পাওয়ায় তেঁতুলিয়া মডেল থানায় আনন্দ উদযাপন অনুষ্ঠানটি আয়োজন করা হয়।

উক্ত আনন্দ উদযাপন অনুষ্ঠানে সভাপতির দ্বায়িত্ব পালন করেন তেঁতুলিয়া মডেল থানা অফিসার ইনচার্জ জনাব, আবু ছায়েম মিয়া,অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জনাব এস,এম সফিকুল ইসলাম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার পঞ্চগড়, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জনাব কাজী মাহমুদুর রহমান ডাবলু,চেয়ারম্যান, উপজেলা পরিষদ, তেঁতুলিয়া, বীর মুক্তিযোদ্ধা ইয়াসিন আলী মন্ডল,বীর মুক্তিযোদ্ধা কাজী মাহবুবুর রহমান, তেঁতুলিয়া উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মো ইউসুফ আলী সহ আরো অনেকে।

ঐতিহাসিক ৭ মার্চের ভাষণ প্রসঙ্গেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি  পঞ্চগড় জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এস,এম সফিকুল ইসলাম   বলেন, ঐতিহাসিক ৭ মার্চে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান যে ভাষণ দিয়েছিলেন, সেই সময় যে অবস্থা ছিল, তার প্রতিটি ভাষণই এক একটা ইউনেস্কো হেরিটেজে অন্তর্ভুক্ত হওয়ার মতো।
 
কাজী মাহমুদুর রহমান ডাবলু বলেন, উন্নয়নের মহাসড়ক থেকে বাংলাদেশ ইতোমধ্যে এলডিসির লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করেছে। আগামীতে ২০৩০ সালে এসডিজির লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে সক্ষম হবে বাংলাদেশ। ২০৪০ সালে আমাদের দেশ উন্নত সমৃদ্ধ বাংলাদেশ হিসেবে গড়ে উঠবে।

অনুষ্ঠানের শুরুতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক ৭ মার্চের ভাষণ প্রচার করা হয়। এরপর বাংলাদেশের এলডিসি থেকে উন্নয়নশীল দেশে উত্তরণে জাতিসংঘের চূড়ান্ত সুপারিশপ্রাপ্তিতে তৈরি ডকুমেন্টারি ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্যে দিয়ে সমাপ্তি হয়।

মোহনগঞ্জে ৭ই মার্চ উপলক্ষে আলোচনা সভা

মোহনগঞ্জে ৭ই মার্চ উপলক্ষে আলোচনা সভা

আজহারুল ইসলাম মোহনগঞ্জ প্রতিনিধি নেত্রকোনাঃনেত্রকোনার মোহনগঞ্জে 'এবারের সংগ্রাম আমাদের মুক্তির সংগ্রাম, এবারের সংগ্রাম স্বাধীনতার সংগ্রাম' সেই ঐতিহাসিক ভাষণের '৭ই মার্চ' দিবসে 'জাতির পিতা'র প্রতিকৃতিতে পুস্পস্তবক অর্পণের মাধ্যমে গভীর শ্রদ্ধা নিবেদনের পর আলোচনা সভা করা হয়। 


রবিবার সকাল ৮টার দিকে উপজেলা প্রশাসনিক ভবনের সামনে স্থাপিত 'জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান উপজেলা নির্বাহী অফিসার আরিফুজ্জামান, উপজেলা চেয়ারম্যান মো. শহীদ ইকবাল, পৌর মেয়র এডভোকেট লতিফুর রহমান রতনসহ সকল স্তরের নেতৃবৃন্দ ও কর্মকর্তা। পরে বেলা ১০টার দিকে উপজেলা হলরুমে  ঐতিহাসিক  ৭ই মার্চের ভাষণের তাৎপর্য নিয়ে আলোচনা করা হয়।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার আরিফুজ্জামানের সভাপতিত্বে ও যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা মো. নুরুজ্জামানের সঞ্চালনায় এতে বক্তব্য রাখেন  উপজেলা চেয়ারম্যান মো. শহীদ ইকবাল, ভাইস চেয়ারম্যান দিলীপ দত্ত, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (বারহাট্টা সার্কেল) সাইদুর রহমান, এসিল্যান্ড নাজনীন সুলতানা, জেলা পরিষদ প্যানেল মেয়র এড. আবদুল হান্নান রতন প্রমূখ।

'৭ মার্চ' 'বাঙালি জাতি'র দীর্ঘ স্বাধীনতা সংগ্রাম ও মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসের ঐতিহাসিক দিন। ১৯৭১ সালের এই দিনে ঐতিহাসিক রেসকোর্স ময়দানে (বর্তমানে সোহরাওয়ার্দী উদ্যান) এক বিশাল জনসমুদ্রে দাঁড়িয়ে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামের ডাক দেন।  তিনি পাকিস্তানের শোষণকারী শাসকগোষ্ঠীর হাত থেকে দেশকে মুক্ত করতে জাতিকে স্বাধীনতা যুদ্ধের প্রস্তুতি নেয়ার নির্দেশ দেন। বঙ্গবন্ধুর বজ্রকরতণ্ঠে ধ্বনিত হয় "এবারের সংগ্রাম আমাদের মুক্তির সংগ্রাম, এবারের সংগ্রাম স্বাধীনতার সংগ্রাম"।

ঝিকরগাছায় ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ উপলক্ষে আনন্দ উদযাপন অনুষ্ঠানে ডা. মোঃ নাসির উদ্দিন এমপি

ঝিকরগাছায় ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ উপলক্ষে আনন্দ উদযাপন অনুষ্ঠানে ডা. মোঃ নাসির উদ্দিন এমপি

আফজাল হোসেন চাঁদ : যশোরের ঝিকরগাছা থানার আয়োজনে ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠান ও বাংলাদেশ এলডিসি থেকে উন্নয়নশীল দেশে উত্তরণে জাতিসংঘের চূড়ান্ত সুপারিশ প্রাপ্তিতে কেক কেটে আনন্দ উদযাপন করা হয়েছে। অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ পুলিশ ঝিকরগাছা থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আব্দুর রাজ্জাকের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন যশোর-২(চৌগাছা-ঝিকরগাছা) আসনে জাতীয় সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা মেজর জেনারেল অবসরপ্রাপ্ত ডা. মোঃ নাসির উদ্দিন। তিনি তার বক্তব্যে বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এই বাংলাতে জন্ম নিয়েছিলো বলেই আজ আমরা বাংলাদেশ পেয়েছি। বঙ্গবন্ধুর এই বাংলাকে সোনার বাংলা হিসাবে গড়তে প্রধানমন্ত্রীর হাতকে শক্তিশালী করতে হবে।
অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ পুলিশ ঝিকরগাছা থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মেজবাহ উদ্দীন আহমেদের সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথি ছিলেন, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ মনিরুল ইসলাম, উপজেলা নির্বাহী অফিসার আরাফাত রহমান, উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম মুকুল, সিনিয়র সহ-সভাপতি ও পৌর মেয়র আলহাজ্ব মোস্তফা আনোয়ার পাশা জামাল, সহ-সভাপতি চৌধুরী রমজান শরীফ বাদশা, সাবেক উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ডাঃ মোস্তাফিজুর রহমান মুসা, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মোঃ সেলিম রেজা, বীর মুক্তিযোদ্ধা লিয়াকত আলী, গঙ্গানন্দপুর ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান আমিনুর রহমান, প্রেস ক্লাবের  সভাপতি এমামুল হাসান সবুজ, সাংবাদিক আফজাল হোসেন চাঁদ, বাংলাদেশ পুলিশ ঝিকরগাছা থানার সেকেন্ড অফিসার এসআই (নিঃ) মোঃ কামরুজ্জামান, এসআই (নিঃ) মোঃ নজরুল, কাজী সাইদুজ্জামান, হেলাল উজ্জামান, সৈয়দ আবু সুফিয়ান, মেজবাহুর রহমান, সুমন বিশ্বাস, সুব্রত কুমার কুন্ডু, সিরাজুল ইসলাম, আনিচুর রহমান, এএসআই(নিঃ) মহিদুল ইসলাম, ফিরোজ, রিয়াজুল ইসলাম খান, ইকরামুল ইসলাম, আনিছুর রহমান, ওলিয়ার রহমান, মাসুদ রানা, রুহুল আমিন, সহিদ হোসেন, রুমা রায়, থানা ডিএসবি হাফিজুর রহমান হাফিজ, বিভিন্ন ইউনিয়নের চেয়ারম্যানবৃন্দ, পৌরসভার কাউন্সিলরবৃন্দ সহ আরও অনেকে। এছাড়াও সকালে উপজেলা প্রশাসন, পৌরসভা, ঝিকরগাছা সরকারি এমএল মডেল হাই স্কুল সহ সর্বস্তরের নেতৃবৃন্দদের সমন্বয়ে ৭ই মার্চ উদযাপন উপলক্ষে উপজেলা মোড়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্মৃতি বিজড়িত স্তম্ভে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়।

ঝিকরগাছা উপজেলা চেয়ারম্যানের মায়ের মৃত্যুতে যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য আনোয়ারের শোক

ঝিকরগাছা উপজেলা চেয়ারম্যানের মায়ের মৃত্যুতে যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য আনোয়ারের শোক

আফজাল হোসেন চাঁদ : যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলা পরিষদের উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মোঃ মনিরুল ইসলামের মাতা সখিনা ইসলাম (৭১) বার্ধক্যজনিত কারণে শনিবার নিজ বাড়িতে মৃত্যুবরণ করেছেন। তার মৃত্যুতে বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা ও শোকাহত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করেছেন, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য আনোয়ার।

ঝিকরগাছায় পানের বরজে আগুন, কৃষকের স্বপ্ন পুড়ে ছাই

ঝিকরগাছায় পানের বরজে আগুন, কৃষকের স্বপ্ন পুড়ে ছাই

আফজাল হোসেন চাঁদ : যশোরের ঝিকরগাছা পৌরসদরের মোবারকপুরের একটি পানের বরজে আগুন কৃষকের স্বপ্ন পুড়ে ছাই। যার করণে প্রায় ১৩ লক্ষ টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে জানান পানের বরজের মালিক মোঃ কবির উদ্দিন। তিনি মোবারকপুর গ্রামের মৃত করিম বকর্সের ছেলে। এবিষয়ে মোঃ কবির উদ্দিন বাদি হয়ে ঝিকরগাছা থানায় ৪জনকে বিবাদী করে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, পূর্ব শত্রুতার জের ধরে পৌরসদরের মোবারকপুর কলেজপাড়া গ্রামের বিবাদী নুর নাহারের ছেলে মোঃ সজিব(১৩), ইয়াসিন (৪৫), মোমিনের ছেলে মোঃ সাইফুল (২৯) ও মোঃ স্বপন (৪৭) বৃহস্পতিবার (০৪ মার্চ) বিকাল অনুমান ৫টা ৩০মিনিটের সময় বাদি মোঃ কবির উদ্দিনের ১বিঘা ৫কাটা জমির পানের বরজে আগুন ধরিয়ে দেয়। যার কারণে বাদির প্রায় ১৩ লক্ষ টাকার ক্ষতি সাধিত হয়েছে। ক্ষতি করেও বিবাদীরা খ্যান্ত হয়নি। পানের বরজে আগুনের বিষয় বলতে গেলে বিবাদীরা বাদিকে অকথ্যভাষায় গালিগালাজসহ খুন জখমও করবে বলে বিভিন্ন ধরণের ভয় ভীতি ও বড় ধরণের ক্ষতি সাধন করিবে বলে হুমকি প্রদান করছে বলে অভিযোগে উল্লেখ করেছেন। এ ব্যাপারে ঝিকরগাছা থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আব্দুর রাজ্জাক বলেন, একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। অভিযোগের উপর তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মোংলায় ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ উদযাপন

মোংলায় ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ উদযাপন

মোঃএরশাদ হোসেন রনি, মোংলাঃ ঐতিহাসিক সাতই মার্চ উদযাপন উপলক্ষে মোংলায় সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন সংস্থার আয়োজনে ৭ মার্চ রবিবার দিনব্যাপী নানা কর্মসুচি পালিত হয়েছে। কর্মসুচির মধ্যে ছিলো বঙ্গবন্ধু স্মৃতি স্তম্ভ ও ভাস্কর্যে শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পন, আলোচনা সভা, শিশু চিত্রাংকন এবং আবৃত্তি প্রতিযোগিতা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

রবিবার সকাল সাড়ে ৯টায় বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ও স্মৃতি স্তম্ভে শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পন করে উপজেলা প্রশাসন, মোংলা পোর্ট পৌরসভা, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, পুলিশ বিভাগ, আওয়ামীলীগ ও সহযোগী সংগঠনসমুহ। সকাল সাড়ে ১০টায় উপজেলা অফিসার্স ক্লাবে উপজেলা প্রশাসন আয়োজিত আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনু্ষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহি অফিসার কমলেশ মজুমদার। বক্তব্য রাখেন সহকারি কমিশনার (ভূমি) নয়ন কুমার রাজবংশী, উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ জীবিতেষ বিশ্বাস, সাবেক উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মোঃ নূর আলম শেখ, বীর মুক্তিযোদ্ধা ইউপি চেয়ারম্যান নিখিল চন্দ্র রায়, বীর মুক্তিযোদ্ধা ডাঃ লতিফ হাওলাদার, বীর মুক্তিযোদ্ধা মহসিন আকন্দ প্রমূখ। আলোচনা সভা শেষে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান হয়। সকাল ১১টায় দলীয় কার্য্যালয়ে উপজেলা ও পৌর আওয়ামীলীগ আয়োজিত আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি অধ্যক্ষ সুনীল কুমার বিশ্বাস। আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন উপজেলা চেয়ারম্যান আবু তাহের হাওলাদার, মোংলা পোর্ট পৌরসভার মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধ শেখ আব্দুর রহমান, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ ইব্রাহিম হোসেন পৌর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ কামরুজ্জামান জসিম প্রমূখ। সকাল ১০টায় শিক্ষক মিলনায়তনে মোংলা সরকারি কলেজ আয়োজিত আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব অধ্যক্ষ মোঃ গোলাম সরোয়ার। বক্তব্য রাখেন প্রভাষক শ্যামা প্রসাদ সেন, প্রভাষক বিশ্বজিৎ হালদার, প্রভাষক মনোজ কান্তি বিশ্বাস, প্রভাষক মমতাজ খানম, প্রভাষক নিগার সুলতানা সুমী, প্রভাষক কামাল হোসেন প্রমূখ। বিকাল ৪টায় মোংলা থানা পুলিশের আয়োজনে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয় আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত ডি আই জি (ক্রাইম)খুলনা রেঞ্জ   মোঃনজরুল ইসলাম বিপিএম, পিপিএম, মোংলা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবু তাহের হাওলাদার, মোংলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কমলেশ মজুমদার, সহকারী কমিশনার ভূমি নয়ন কুমার রাজবংশী,মোংলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের পবিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ জীবিতেশ বিশ্বাস, উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি বাবু সুনিল কুমার বিশ্বাস, সাধারণ সম্পাদক মোঃ ইব্রাহীম হোসেন, মোংলা প্রেস ক্লাব এর সাধারন সম্পাদক আমির হোসেন আমু সহ প্রমূখ আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন     মোংলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ইকবাল বাহার চৌধুরী,আলোচনা সভা শেষে সন্ধ্যায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

ঐতিহাসিক ৭ মার্চ উপলক্ষ্যে বাংলাদেশে এলডিসি থেকে উন্নয়ন শীল দেশে উত্তরণে আনন্দ উদযাপন

ঐতিহাসিক ৭ মার্চ উপলক্ষ্যে বাংলাদেশে এলডিসি থেকে উন্নয়ন শীল দেশে উত্তরণে আনন্দ উদযাপন


দিনাজপুর প্রতিনিধি : পুলিশ হবে জনতার এই  প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে দিনাজপুর কোতয়ালী থানা চত্বরে দিনাজপুর জেলা পুলিশের আয়োজনে ঐতিহাসিক ৭ ইর্ মাচ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে পুলিশ হবে জনতার এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে। দিনাজপুর কোতয়ালী থানা চত্বরে দিনাজপুর জেলা পুলিশের আয়োজনে ঐতিহাসিক ৭ মার্চ উপলক্ষ্যে আয়োজিত অনুষ্ঠান ও বাংলাদেশে এলডিসি থেকে উন্নয়ন শীল দেশে উত্তরণে জাতিসংঘের সুপারিশপ্রাপ্তীতে আনন্দ উদযাপন অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। কোতয়ালী থানা অফিসার ইনর্চাজ মোঃ মোজাফ্ফর হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিতির বক্তব্য রাখেন, পুলিশ সুপার ইন সার্ভিস ট্রেনিং সেন্টার দিনাজপুরের মোঃ শাহাজান, এসময় উপস্থিত ছিলেন ওসি অপারেশন মোঃ গোলাম মাওলা, ওসি তদন্ত মোঃ আসাদুজ্জামান আসাদ সহ মুক্তিযোদ্ধা এবং সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোঃ এমদাদ সরকার,ও উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান সহ অন্যান্য নের্তৃবৃন্দগণ উপস্থিত ছিলেন।

কোটচাঁদপুর মডেল থানার উদ্যোগে ঐতিহাসিক ৭, মার্চ পালন

কোটচাঁদপুর মডেল থানার উদ্যোগে  ঐতিহাসিক ৭, মার্চ  পালন

খোন্দকার আব্দুল্লাহ বাশার,খুলনা ব্যুরো প্রধানঃ
৭ই মার্চ জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর ঐতিহাসিক ভাষন উপলক্ষে বাংলাদেশ এলডিসি থেকে উন্নয়নশীল দেশে উত্তরণে জাতিসংঘের চূরান্ত সুপারিশ প্রাপ্তিতে আনন্দ উদযাপনের লক্ষে ঝিনাইদহের কোটচাঁদপুর মডেল থানার উদ্যোগে আলোচনা সভা ও এক সংগীত সন্ধ্যা অনুষ্ঠিত হয়েছে। 
রবিবার (৭ই মার্চ) বিকালে মডেল থানা চত্বরে অফিসার্স ইনচার্জ মাহবুবুল আলম এর সভাপতিত্বে ও মডেল থানার (তদন্ত) ওসি ইমরান আলমের পরিচালনায় উক্ত আলোচনা সভা ও আনন্দ উদযাপন অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র কোরআন তেলাওয়াত ও কেক কেটে আনন্দ উৎযাপনের শুভ উদ্বোধন করার মধ্য দিয়ে উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাইমিনুল ইসলাম । 
স্বাগত বক্তব্য রাখেন মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মাহবুবুল আলম। 

বিশেষ অতিথি হিসেবে আরও বক্তব্য রাখেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শরিফুন্নেচ্ছা মিকি, পৌরসভার মেয়র সহিদুজ্জামান সেলিম,উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান রিয়াজ হোসেন ফারুক, সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার তাজুল ইসলাম, ১নং সাফদারপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নওশের আলী প্রমুখ।

অনুষ্ঠানের মধ্যে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের রেসকোর্স ময়দানে ঐতিহাসিক ৭ই মার্চের ভাষণ সহ মুক্তিযুদ্ধ ভিত্তিক ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সরাসরি ভিডিও লাইফের  প্রামান্যচিত্র ভিডিও ধারনের মাধ্যমে দেখানো হয় 
এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন জেলা পরিষদের সদস্য শামীমা আক্তার হ্যাপি, উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পিংকি খাতুন,৫নং এলাঙ্গী ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান খান, উপজেলা আঃলীগের সহসভাপতি কায়দার রহমান,৪নং বলুহর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আঃমতিন, পৌরসভার কাউন্সিলর জাহিদ হোসেন, শেখ সোহেল আরমান, সোহেল আল মামুন,সুব্রত চক্রবর্তী, রকিব উদ্দীন, সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর গাজী তানজিমা,রত্মা পারভিন,শারমিন আক্তার সাথী, মডেল থানার সেকেন্ড অফিসার (নিরস্ত্র) আব্দুল মান্নান, পৌর ফাঁড়ি ইনচার্জ আক্তারুজ্জামান লিটন,এসআই তৌফিক আনাম, এসআই শরিফুল ইসলাম শরিফ,এসআই শামিম, এসআই জাহিরুল ইসলাম সহ মডেল থানার সকল কর্তব্যরত পুলিশ অফিসার ও কনেষ্টেবলগন,উপজেলা ফায়ার সার্ভিসের সকল ইউনিট সহ বিভিন্ন প্রিন্ট পত্রিকার সম্মানিত সাংবাদিকবৃন্দ, দলীয় নেতৃবৃন্দ ও স্থানীয় সুধীজন।

নবীগঞ্জ উপজেলা ৯নং বাউসা ইউনিয়ন তারেক পরিষদ ৫১সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন

নবীগঞ্জ উপজেলা ৯নং বাউসা ইউনিয়ন তারেক পরিষদ ৫১সদস্য বিশিষ্ট  কমিটি গঠন

মোঃ নাসির চৌধুরী তানভীর,নবীগঞ্জ উপজেলা প্রতিনিধি: নবীগঞ্জ উপজেলা ৯নং বাউসা ইউনিয়ন ৫১ সদস্য বিশিষ্ট  তারেক পরিষদ কমিটি গঠন। বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের অন্যতম অঙ্গ সংগঠন,  তারেক পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম আহ্বায়ক ও হবিগঞ্জ জেলা তারেক পরিষদের  সভাপতি জনাব সাইদুর রহমান কুঠি মহোদয়ের আহ্বানে, নবীগঞ্জ উপজেলা তারেক পরিষদের আহ্বায়ক মোঃ মনসুর আল রাকিব ও যুগ্ম আহ্বায়ক মোঃ শামিম খানের সাক্ষরে আজ ৯নং বাউসা ইউনিয়ন তারেক পরিষদ কমিটি গঠন করা হয়েছে। 

এইচ.আর হাবিব চৌধুরী সভাপতি ও মোঃ এনামুল হক সাধারণ সম্পাদক, সহ সভাপতি,  মোঃ আবু সামাদ,  সহ সভাপতি,  মোঃ মুহিবুর রহমান,  যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক,  সাইদুল হাসান সোহাগ,  যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক,  মোঃ তারেক আহমেদ, সহ সাধারণ সম্পাদক,  মোঃ বাপ্পু আহমেদ,  সহ সাধারণ সম্পাদক, সহ সাধারণ সম্পাদক,  সুহেল রানা,  সাংগঠনিক সম্পাদক,  মোঃ হাসান আহমেদ,  সহ সাংগঠনিক সম্পাদক,  গৌরমনি সরকার, সাহিত্য ও প্রকাসক সম্পাদক,  মোঃ এমরান আখন্জী, তথ্য বিষয়ক সম্পাদক, মোঃ কামরুল হাসান,  প্রচার সম্পাদক,  শাহ্ রুবেল আহমেদ,  প্রচার সম্পাদক,  শেখ রাকিব আহমেদ, সদস্য সচিব,  আমিনুল ইসলাম মামুন,  কার্যনির্বাহী সদস্য বৃদ্ধঃ মোঃ নাজমুল মিয়া, মির্জা আনছার বক্স, মোঃ মহসিন চৌধুরী,  শাহ্ আলম, মোঃ হাবিব উল্লা,মোঃ তাহের মিয়া, সুলতান আহমেদ, এমদাদ আলী,  সুলতান আহমদ,  নজরুল ইসলাম,  জাহাঙ্গীর আলম, মোঃ এমরান চৌধুরী,  মোঃ জুনাব আলী,  শেখ সৌরভ আহমেদ,  ইলিয়াস আলী ফয়ছল,  অপু আহমেদ, সাইফুর রহমান,  মেঃ সমিত হাসান প্রমূখ

৭ই মার্চ উপলক্ষে প্রেসক্লাব লালমনিরহাটের পক্ষ থেকে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে মাল্যদান

৭ই মার্চ উপলক্ষে প্রেসক্লাব লালমনিরহাটের পক্ষ থেকে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে মাল্যদান

রশিদুল ইসলাম রিপন,লালমনিরহাট জেলা  প্রতিনিধিঃ আজ (৭ই মার্চ) লালমনিরহাটে নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ জাতীয় দিবস পালন করেছে প্রেসক্লাব লালমনিরহাট। 

রবিবার ৭ই মার্চ দিবসটি উপলক্ষে প্রেসক্লাব লালমনিরহাটের পক্ষ থেকে জাতীয় পতাকা উত্তোলন, বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে মাল্যদান ও দিনব্যাপী বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক ৭ই মার্চের ভাষণ প্রচারণা করা হয়।

এসময় উপস্থিত ছিলেন এস এ টিভির সাংবাদিক ও প্রেসক্লাব লালমনিরহাটের সাধারণ সম্পাদক আশিকুর রহমান ডিফেন্স, সিনিয়র সাংবাদিক লিয়াকত আলী,সাপ্তাহিক নতুন বাংলার সংবাদ পত্রিকার সম্পাদক আসাদুল ইসলাম সবুজ, সাপ্তাহিক লালমনিরহাট বার্তার বার্তা সম্পাদক সৈকত ইসলাম, বাংলাদেশের খবরের সাংবাদিক এসকে সাহেদ, বিজনেস বাংলাদেশের সাংবাদিক আশরাফুল হক, সময়ের আলোর সাংবাদিক তন্ময় আহমেদ নয়ন, সাংবাদিক মামুনুর রশীদ মিঠু, সাংবাদিক জহির মাহমুদ, সাংবাদিক রাসেল ইসলাম প্রমুখ।

উল্লেখ্য, ঐতিহাসিক এই দিনটি উপলক্ষে প্রেসক্লাব ভবন আলোকসজ্জায় সজ্জিত করা হয়।

বালুমহল ইজারার নামে শৈলকুপার গড়াই নদীর চরের ফসলী জমি কাটা হচ্ছে

বালুমহল ইজারার নামে শৈলকুপার গড়াই নদীর চরের ফসলী জমি কাটা হচ্ছে

সম্রাট হোসেন, ঝিনাইদহ প্রতিনিধিঃ বদলে যাচ্ছে নদীর গতি পথ ভাঙ্গছে গ্রামের পর গ্রাম উদাসীন ভূমি অফিস সহ কর্তৃপক্ষ ঝিনাইদহের শৈলকুপার কৃষ্ণনগর মৌজার ফসলী জমি থেকে বালু কেটে গভীর খাদে পরিনত করা হচ্ছে। মাসের পর মাস ধরে এভাবে বালু উত্তোলন করায় বদলে যাচ্ছে গড়াই নদীর গতিপথ।  ভাঙ্গছে গ্রামের পর গ্রাম।  নির্বিকার রয়েছে ভূমি অফিস সহ কর্তৃপক্ষ।  কুষ্টিয়ার খোকশা উপজেলার আওতাধীন গড়াই নদীর চাদট মৌজার বালুমহল ইজারর নামে এভাবে ঝিনাইদহের শৈলকুপা থেকে চলছে বালু হরিলুট।  জনপ্রতিনিধিরাও আছে চুপচাপ! 

 এলাকাবাসী জানিয়েছে বর্ষা মৌসুমে শৈলকুপার কৃষ্ণনগর গ্রামে নতুন এলাকায় গড়াই নদীর ভাঙন দেখা দিতে পারে। এরই মাঝে গড়াই নদীর ভাঙনে বিলিন হয়েছে কৃষ্ণনগরের পার্শ্ববর্তী বরুরিয়া গ্রাম।
খোঁজ নিয়ে জানা যায়, গত ৭ জানুয়ারী কুষ্টিয়ার জেলার বালু ও মাটি ব্যবস্থাপনা কমিটির সভায় খোকসা উপজেলার চাদট মৌজার বালুমহল বাংলা ১লা মাঘ থেকে ৩০ চৈত্র পর্যন্ত ১৬ লক্ষ টাকায় তিন মাসের জন্য ইজারা পান শৈলকুপা উপজেলার পাইকপাড়া গ্রামের ওমেদ আলীর ছেলে মিরাজ বিশ্বাস। 

এলাকা ঘুরে দেখা যায়, খোকসার চাদট মৌজার বালু উত্তোলনের কার্যাদেশ থাকলেও প্রভাব খাটিয়ে ইজারাদার শৈলকুপার ৫৭ নং কৃষ্ণনগর মৌজার ফসলী জমি ২০/৩০ ফিট গভীর করে কেটে বালু ও মাটি উত্তোলন করছে।

 আসাদ শেখ আমাদের জানান  এই গ্রামের  চরের তার ফসলী জমি ফসল সহ মাটি ও বালি কেটে নেওয়া হয়েছে । আর এক কৃষক  জানান ইজারার নামে  গড়াই নদীর শৈলকুপা আংশের বেশ কিছু জায়গা ফসল সহ মাটি বালি কাটায়, নদীর গতি পথ বাধা গ্রস্থ হচ্ছে। এই বর্ষায় ঘটতে  ব্যাপক ভাঙ্গন 
শৈলকুপার চর এলাকার ফসলী জমি থেকে মাটি ও বালু উত্তোলন নিয়ে চাদট বালুমহলের ইজারাদারের সহযোগী আনসার বিশ্বাসের সাথে কথা হলে তিনি জানান, জমির মালিক তাদের কাছে মাটি বিক্রি করেছে তাই তিনি কেটে নিচ্ছেন।

শৈলকুপা অংশের চর থেকে মাটি ও বালু উত্তোলন নিয়ে নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট সহকারী কমিশনার (ভূমি) পার্থ প্রতিম শীল জানান, এমন অভিযোগ তিনি পেয়েছেন। অভিযোগটি লিখিত আকারে কুষ্টিয়া জেলায় সংশ্লিষ্ট দপ্তরে পাঠানো হয়েছে। দু একদিনের মধ্যে কৃষ্ণনগর চর এলাকা পরিদর্শন করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

নওগাঁর আত্রাইয়ে মৃৎ শিল্প বিলুপ্তির পথে; পেশা ধরে রাখতে ঋণ সহায়তা দাবি

নওগাঁর আত্রাইয়ে মৃৎ শিল্প বিলুপ্তির পথে; পেশা ধরে রাখতে ঋণ সহায়তা দাবি

রাজশাহী ব্যুরোঃ
মৃৎ শিল্প বাঙালী সংস্কৃতির একটি বড় অংশ। এঁটেল মাটি দিয়ে এক সময় মাটির হাড়ি, পাতিল, সাড়া, কাঁসা ও প্রভৃতি বাসন তৈরি করা হতো। আর এসব মাটির তৈরি জিনিসপত্রের কদরও ছিল বেশ ভালো।

এক সময় বাংলার ঘরে ঘরে মাটির থালা, পাতিল, কলস, চারা এবং আরো অনেক বাসনপত্র দেখা গেলেও এখন সেখানে জায়গা করে নিয়েছে প্লাস্টিকের থালা, কলস, বদনা, বাটি থেকে শুরু করে যাবতীয় পণ্য।

প্রয়োজনীয় পুঁজির স্বল্পতা, শ্রমিকের মজুরি বৃদ্ধি এবং এই মাটির বাসনপত্র তৈরির জন্য এঁটেল মাটির ব্যবহার ব্যাপক হারে করা হয়ে থাকে। আগে এ মাটি নদীর কূল, পুকুর খননকালে বিনা পয়সায় পাওয়া যেত। কিন্তু বর্তমানে এ মাটি কিনতে হয় বেশি দামে। এছাড়া জ্বালানীসহ আনুসঙ্গিক প্রয়োজনীয় উপকরণাদির দাম বৃদ্ধি ও প্লাস্টিক পণ্যের সহজলভ্যতার কারণে বাংলাদেশে মৃৎ শিল্প আজ বিলুপ্রি পথে। কালের বিবর্তনে মৃৎ শিল্প বাংলার প্রাচীন ঐতিহ্য এখন শোভা পাচ্ছে বিভিন্ন জাদুঘরে।

এক সময় সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত গ্রাম বাংলার পল্লীতে মৃৎ শিল্প কারিগররা (কুমার) চাকে বসে এঁটেল মাটি দিয়ে জিনিসপত্র তৈরি করতো। পুরুষদের পাশাপাশি নারীরাও মৃৎ শিল্পের কারিগর হিসেবে তারা এ কাজে সামিল হতো। এরপর নারীরা মাটির হাড়ি-পাতিল তৈরি করে রোদে ভাল করে শুকিয়ে এ মাটির পণ্যগুলো পুড়িয়ে বিক্রয়ের জন্য প্রস্তুত করেন। পুরুষরা এসব মাটির তৈরি পণ্য হাট-বাজারে এবং গ্রামে গ্রামে ফেরি করে বিক্রি করে থাকেন।

কিন্তু সময়ের পরিবর্তনের ফলে মৃৎ শিল্পের কারিগররা তাদের এ পেশা ধরে রাখতে হিমশিম খাচ্ছেন। ফলে বেকার হয়ে পড়ছেন মৃৎ শিল্পের কারিগররা। অনেক মৃৎ শিল্পের কারিগররা বাপ-দাদার এ পেশা ছেড়ে অন্য পেশায় চলে যাচ্ছেন।

এছাড়া মাটির বাসনাদি আর আগের মতো চলেনা। কারণ হচ্ছে, বর্তমানে প্লাস্টিকের পণ্য এখন বাজার দখল করে নিয়েছে। এক সময় গ্রামের প্রতিটি বাড়িতে মাটির তৈরি হাড়ি-পাতিলের ব্যাপক প্রচলন ছিল। এখন এ শিল্প আর আগের মতো চলেনা। দিন দিন কর্মসংস্থান সংকুচিত হওয়ায় মৃৎ শিল্পীরা অনেক কষ্টে দিনাতিপাত করছে। শত প্রতিকূলতার মধ্যে এ পুরাতন পেশা ধরে রাখতে চেষ্টা করছে। এছাড়া তারা সহজ শর্তে সরকারি-বেসরকারি সংস্থার ঋণ সহায়তা দাবী করেন।

বাংলাদেশ জননেত্রী শেখ হাসিনা পরিষদ এর উদ্যোগে ঐতিহাসিক ৭ ই মার্চ উদযাপন

বাংলাদেশ জননেত্রী শেখ হাসিনা পরিষদ এর উদ্যোগে ঐতিহাসিক ৭ ই মার্চ উদযাপন

প্রেস বিজ্ঞপ্তিঃ  আজ ঐতিহাসিক ৭ ই মার্চ দিবস ইউনেস্কো কর্তৃক স্বীকৃতি প্রাপ্ত অন্যতম বিশ্বের শ্রেষ্ঠ ভাষণ জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান আজকের এই দিনে ঢাকা রেসকোর্স ময়দানে তার ১৯ মিনিট দেওয়া ভাষণ  উপলক্ষে বাংলাদেশ জননেত্রী শেখ হাসিনা পরিষদ কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ও ঢাকা-২ আসনের ভবিষ্যত এমপি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভানেত্রী গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন জননেত্রী শেখ হাসিনার স্নেহভাজন জননেতা মোঃ মনির খানের নেতৃত্বে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে গভীর শ্রদ্ধাঞ্জলি জ্ঞাপন করা হয় বঙ্গবন্ধু জাদুঘর ধানমন্ডি ৩২ নম্বরে।

হিলিতে নানা কর্মসূচীর মধ্য দিয়ে ঐতিহাসিক ৭ মার্চ দিবস পালিত হয়েছে

হিলিতে নানা কর্মসূচীর মধ্য দিয়ে ঐতিহাসিক ৭ মার্চ দিবস পালিত হয়েছে

হিলি প্রতিনিধিঃ দিনাজপুরের হিলিতে নানা কর্মসূচীর মধ্য দিয়ে ঐতিহাসিক ৭ মার্চ দিবস পালিত হয়েছে।
আজ রবিবার সকাল সাড়ে ৮ টায় হাকিমপুর পৌর আওয়ামীলীগের আয়োজনে হিলি বাজারস্থ দলীয় কার্যালয়ে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়। পরে জাতিরজনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের রুহের মাগফেরাত কামনা করে বিশেষ দোয়া করা হয়।

এরপরে জাতিরজনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিত্বে পুষ্পমাল্য অর্পনের মাধ্যমে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন, হাকিমপুর উপজেলা চেয়ারম্যান হারুন উর রশিদ হারুন, উপজেলা নির্বাহী অফিসার  মোহাম্মাদ নূর-এ আলম, পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি ও পৌর মেয়র জামিল হোসেন চলন্ত, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান শাহিনুর রেজাসহ অনেকে উপস্থিত ছিলেন।

বড়লেখায় ঐতিহাসিক ৭ মার্চ উপলক্ষে আলোচনা সভা ও পুরষ্কার বিতরণ

বড়লেখায় ঐতিহাসিক ৭ মার্চ উপলক্ষে আলোচনা সভা ও পুরষ্কার বিতরণ

আকরাম হোসাইন মৌলভীবাজার জেলা প্রতিনিধিঃ মৌলভীবাজারের বড়লেখা উপজেলায় ঐতিহাসিক ৭ মার্চ ,জাতীয় দিবস ২০২১ উপলক্ষে বড়লেখা উপজেলা প্রশাসন আয়োজিত আলোচনা সভা , পুরষ্কার বিতরণ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন পরিবেশ বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের মাননীয় মন্ত্রী জনাব মোঃ শাহাব উদ্দিন এমপি মহোদয়।
বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান জনাব সোয়েব আহমদ।
উপস্থিত ছিলেন বড়লেখা উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ শামীম আল ইমরান,জনাব মোঃ তাজ উদ্দিন , ভাইস চেয়ারম্যান, উপজেলা পরিষদ প্রমুখ।

রাজাপুরে নির্মাণকাজ শেষের আগেই ১৩ কোটি টাকার মডেল মসজিদে ফাটল

রাজাপুরে নির্মাণকাজ শেষের আগেই ১৩ কোটি টাকার মডেল মসজিদে ফাটল

মোঃ নাঈম হাসান ঈমন ঝালকাঠি জেলা প্রতিনিধিঃ ঝালকাঠির রাজাপুরে নির্মাণকালে মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্রে ফাটল ধরেছে। এ নিয়ে জনমনে নানা প্রশ্নের দেখা দিয়েছে। উপজেলা সদরের খাদ্যগুদাম সংলগ্নে নির্মাণাধীন মডেল মসজিদের কাজ শেষ হওয়ার আগেই এ ঘটনা ঘটে।জানাগেছে, ২০১৮ সালের শেষের দিকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্যোগে গণপূর্ত অধিদপ্তরের অধিন ও ইসলামিক ফাউন্ডেশনের বাস্তবায়নে মসসজিদের নির্মাণ কাজ শুরু হয়। আর এ ভবনের প্রাক্কলিত ব্যয় ধরা হয় ১৩ কোটি টাকা। নির্মাণ কাজের দায়িত্ব পায় বরিশালের মেসার্স খান বিল্ডার্স নামে একটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানকে।

স্থানীয় মনির হোসেন, কামরুল ইসলাম দুলাল, খোকন তালুকদার জানায়, কাজ শুরুর কিছুদিন পরে নিম্নমানের কাজের অভিযোগে স্থানীয়দের প্রতিরোধে কাজ বন্ধ হয়ে যায়। সঠিক ভাবে কাজ করার শর্তে পুনরায় কাজ শুরু করেন ঐ ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান। বর্তমানে মসজিদের কাজ প্রায় শেষ। এর মধ্যে মসজিদের উত্তর ও দক্ষিন দেয়ালের ভিতর ও বাহিরের অংশে দেখা দিয়েছে ফাটল। দেয়ালের ঐ ফাটল মেরামতের চেষ্টা চলছে। তারা আরো জানায়, মসজিদের মূল অংশের পাইলিং ঠিক থাকলেও পেছনের অংশে ঠিক ভাবে পাইলিং না করার কারনে দেওয়াল ডেবে গিয়ে ফাটল দেখা দিয়েছে। অভিযোগ রয়েছে নির্মাণ কাজের তদারকির দায়িত্বে থাকা ইঞ্জিনিয়ারের অবহেলার কারনেই মসজিদের নির্মাণ কাজ শেষ হতে নাে হতেই ফাটল দেখা দিয়েছে।

এ ব্যাপারে মসজিদের সাইট ইঞ্জিনিয়ার আবুল বাশার লিটন বলেন, এ্যাংকর সিমেন্ট একটু বেশি করা। তাই পর্যপ্ত পানির অভাবে দেয়ালের প্লাষ্টারে ফাটল দেখা দিয়েছিল তা ইতোমধ্যে ঠিক করা হয়েছে। এ ব্যাপারে ঝালকাঠি গণপূর্ত বিভাগের উপ বিভাগীয় প্রেকৌশলী বাদল কুমার মডেল বলেন, দুই দিন আগেও কাজের সাইট থেকে ঘুরে এসেছি মসজিদের দেয়ালে ফাটলের কোন ঘটনা চোখে পড়েনি।

গঙ্গানন্দপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ঐতিহাসিক ৭ ই মার্চ উদযাপন

  গঙ্গানন্দপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ঐতিহাসিক ৭ ই মার্চ উদযাপন
বক্তব্য রাখছেন সভাপতি আমিনুর রহমান     
 স্টাফ রিপোর্টারঃ গঙ্গানন্দপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ঐতিহাসিক ৭ ই মার্চ দিবসটি উদযাপন করা হয়েছে। আজ ৭ ই মার্চ রবিবার সকাল ১০ ঘটিকার সময় অত্র বিদ্যালয়ের অফিস  কক্ষে দিবসটি উদযাপন উপলক্ষে এক আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। 
উক্ত অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বিদ্যালয়ের পরিচালনা পর্ষদ এর সম্মানিত সভাপতি  আমিনুর রহমান। উক্ত অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ১নং গঙ্গানন্দপুর ইউনিয়নের সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দার রহমান,বীর মুক্তিযোদ্ধা  আব্দুল মান্নান।
এসময়  উক্ত অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন  বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মুস্তাফিজুর রহমান,কমিটির বিদ্যুৎসাহী  সদস্য  প্রভাষক মহসীন আলী, বিপ্লব হোসেন, কামারুল ইসলাম, সামসুর রহমান,  জাহাঙ্গীর আলম, শিউলী খাতুন, সহকারী প্রধান শিক্ষক রেজাউল হক প্রমুখ। এ সময় উক্ত অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সিনিয়র শিক্ষক সাজ্জাদুল ইসলাম,অত্র কমিটির শিক্ষক প্রতিনিধি জহুরুল ইসলাম, কামারুজ্জামান টিটো,সহ অত্র বিদ্যালয়ের সকল শিক্ষক কর্মচারী বৃন্দ।  এ সময় ১৯৭১ সালে মহান মুক্তিযুদ্ধে শাহাদত বরণকারী সকল শহীদের স্মরণে দোয়া করা হয়, এ দোয়া পরিচালনা করেন বিদ্যালয়ের ধর্মীয় শিক্ষক আব্দল হান্নান।অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনায় ছিলেন  শিক্ষক রফিকুল ইসলাম।

নাটোরের লালপুর,সড়ক দুর্ঘটনায় এনজিও কর্মীর মৃত্যু

নাটোরের লালপুর,সড়ক দুর্ঘটনায় এনজিও কর্মীর মৃত্যু

রাজশাহী ব্যুরোঃ
নাটোর লালপুর আজ  সকালে ঘন কুয়াশায় নিয়ন্ত্রন হারিয়ে লালপু্র-ঈশ্বরদী সড়কের দক্ষিন লালপুর নামক স্থানে ইঞ্জিনচালিত স্যালোগাড়ী নসিমনের সাথে মোটর সাইকেল সংঘর্ষে শাহীন কবির ( ৪০) নামে এক  এনজিও কর্মী নিহত হয়েছে। 

নিহত শাহীন কবির ব্র্যাক এনজিও'র কর্মী ছিলেন। চাকরি জনিত কারনে তিনি রোববার (৭ মার্চ) সকালে ঈশ্বরদী থেকে রাজশাহী পবায় কর্মস্থলে যাচ্ছিলেন। পথিমধ্যে দক্ষিন লালপুর সড়কে ইঞ্জিনচালিত স্যালোগাড়ি নসিমনের সাথে তার মোটর সাইকেলের সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। নিহতের মরদেহ লালপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আনা হয়েছে। 
ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে লালপুর থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সেলিম রেজা জানান, মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য নাটোর মর্গে পাঠানো হচ্ছে। তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ  করা হবে ৷

সুন্দরবনের ১০ দুর্বৃত্তের আত্মসমর্পণ

সুন্দরবনের  ১০ দুর্বৃত্তের আত্মসমর্পণ

মোঃএরশাদ হোসেন রনি, মোংলা:সুন্দরবনে হরিণ শিকার ও বিষ দিয়ে মাছ ধরাসহ নানা ধরণের বন অপরাধের সাথে জড়িত মোংলার বন সংলগ্ন লোকালয়ের ১০ দুর্বৃত্ত তার নিজ কর্মের ভুল বুঝতে পেরে এবং কৃতকর্মের প্রতি ঘৃনা জমায় স্বাভাবিক পেশায় জীবন যাপন করতে অঙ্গিকারবদ্ধ হয়েছেন। শনিবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে তারা স্বইচ্ছায় মোংলার চিলা ইউনিয়নের জয়মনির পূর্ব সুন্দরবনের চাঁদপাই রেঞ্জ কার্যালয়ে গিয়ে আত্মসমর্পণ করেন। এ সময় তারা তিনশত টাকার ষ্ট্যাম্পে লিখিত অঙ্গিকারবদ্ধ হয়ে স্বাক্ষর করেন। অঙ্গিকারে তারা বলেন, তারা বনের হরিণ শিকার, নদী-খালে বিষ দিয়ে মাছ ধরার মত জঘন্য ও ঘৃনিত কাজের সাথে জড়িত ছিলেন। তারা তাদের অপকর্মের ভুল বুঝতে পেরে এবং এ পেশার প্রতি ঘৃনা জন্মানোতেই তারা স্বইচ্ছায় এ পেশা থেকে সরে আসছেন। ভবিষ্যৎতে তারা এ অপকর্ম থেকে বিরত থাকবেন এবং বিকল্প পেশায় জীবিকা নিবার্হ করবেন। এছাড়া তারা উপস্থিত বনবিভাগের কর্মকতার্ ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের সামনে কোরআন ধরেও শপথ করেন। এ সময়  চাঁদপাই রেঞ্জ কর্মকতার্ মো: এনামুল হক, ষ্টেশন অফিসার মো: ওবায়দুর রহমান ও স্থানীয় ইউপি মেম্বর মো: ওলিয়ার রহমান উপস্থিত ছিলেন। আত্মসমর্পণ, শপথ ও অঙ্গিকারবদ্ধ বন অপরাধীরা হলেন, চিলা ইউনিয়নের বৈদ্যমারী গ্রামের হাবিবুর রহমানের ছেলে ফরিদ হাওলাদার, শহিদুল জোমাদ্দারের ছেলে সোহাগ জোমাদ্দার, ইউসুফ ব্যাপারীর ছেলে ফরিদ ব্যাপারী, জোহর জোমাদ্দারের ছেলে মনির জোমাদ্দার, মজিদ ফকিরের ছেলে ডিয়ার ফকির, আলকাজ শেখের ছেলে শুকুর শেখ, কাশেম ফকিরের ছেলে এমাদুল ফকির ও মাহবুব ফকির, আলমগীর শেখের ছেলে রাসেল শেখ এবং কাশেম ফকিরের ছেলে কামরুল ফকির। 

চাঁদপাই রেঞ্জ কর্মকতার্ মো: এনামুল হক বলেন, নানা ধরণের বন অপরাধের সাথে জড়িত এমন ১০ জন বন অপরাধী হরিণ শিকার ও বিষ দিয়ে মাছ ধরাসহ বনের ক্ষতি সাধন থেকে বিরত থাকা বলে স্বইচ্ছায় আমাদের কাছে আত্মসমর্পণ করে শপথ ও অঙ্গিকারবদ্ধ হয়েছেন। তারা এখন থেকে বিকল্প পেশায় নিয়োজিত হবেন। তাদের প্রত্যেকের বিরুদ্ধে একাধিক বন অপরাধের (হরিণ শিকার, বিষ প্রয়োগ) মামলা রয়েছে। বেশির ভাগের নামে রয়েছে হরিণ শিকারের মামলা। কারো কারো রয়েছে বিষ দিয়ে মাছ ধরার মামলাও। স্বাভাবিক জীবনে ফিরায় তাদের বিকল্প পেশায় সহায়তা করার জন্য বনবিভাগের পক্ষ থেকে আশ্বস্ত করা হয়েছে। বনবিভাগের 'সুরক্ষাথ নামক একটি প্রজেক্ট ইতিমধ্যে পাস হয়েছে। আগামী মাসখানের মধ্যে ওই প্রজেক্টের টাকা ছাড় হবে। ওই প্রজেক্টের আওতায় তাদেরকে বিকল্প কর্মসংস্থানের সুযোগ করে দেয়া হবে বলেও জানান তিনি।