নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণায় মুখর দৌলতখান পৌর এলাকা

মোঃ আওলাদ হোসেন, জেলা প্রতিনিধি ভোলা,দৌলতখানঃ গণসংযোগ আর প্রচার-প্রচারণায় জমে উঠছে আসন্ন দৌলতখান পৌরসভার নির্বাচন। প্রতিশ্রুতির ফুলঝুরি নিয়ে প্রার্থীরা ছুটছেন ভোটারের দ্বারে দ্বারে। প্রতিশ্রুতি দিচ্ছেন পরিছন্ন আধুনিক পৌরসভা গড়ার। প্রত্যেকেই নির্বাচনে জয়ের ব্যাপারে শতভাগ আশাবাদি। আর ভোটাররা বলছেন, সৎ ও যোগ্য প্রার্থীকেই বেছে নেবেন তারা।

পৌরসভার রাস্তাঘাট, অলিগলি ও পাড়া-মহল্লা এখন মিছিল আর স্লোগানমুখর। ব্যানার-ফেস্টুনে ছেয়ে গেছে পুরো শহর। চায়ের দোকান থেকে শুরু করে বসতবাড়িতেও এখন আলোচনার বিষয় শুধু নির্বাচন। প্রার্থীরা ভোট চেয়ে চষে বেড়াচ্ছেন তাদের নির্বাচনী এলাকা।

নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামীলীগ ও বিএনপি মনোনীত প্রার্থী অংশ নিয়েছেন।

আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়রপ্রার্থী জনাব জাকির হোসেন তালুকদার ব্যাপকহারে গণসংযোগ করে বেড়াচ্ছেন। তিনি জানান, মেয়র নির্বাচিত হলে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে দৌলতখান  পৌরসভার সমস্যাগুলো পর্যায়ক্রমে সমাধানের ব্যবস্থা করা হবে। তিনি দৌলতখান  পৌরসভার বর্জ্য ব্যবস্থাপনা এবং যানজট নিরসনসহ মৌলিক সমস্যাগুলো সমাধানের মাধ্যমে আধুনিক পৌরসভা গঠনের প্রতিশ্রুতি দেন।

অন্যদিকে সমানভাবে প্রতিটি ঘরে ঘরে গণসংযোগ চালিয়ে যাচ্ছেন বিএনপি মনোনীত মেয়র প্রার্থী মোঃ আনোয়ার হোসেন কাকন। তিনিও ভোটারদের দ্বারে দ্বারে গিয়ে নানা প্রতিশ্রুতি দিয়ে যাচ্ছেন। তিনি নানা ধরনের প্রতিকূলতার মধ্যেও নির্বাচনী প্রচার প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন। 

একইভাবে নিজ নিজ প্রতীকে ভোট প্রার্থনা করে পাড়া-মহল্লা চষে বেড়াচ্ছেন কাউন্সিলর প্রার্থীরাও। সবাই নিজ নিজ প্রতীকে ভোট দিতে ভোটারদের কাছে অনুরোধ জানান।
পৌর ৯নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থী মোঃ আলমগীর হোসেন প্রচারণায় বেশ এগিয়ে রয়েছেন।ব্যাক্তিগত ভাবে চমৎকার উদ্যোগী এবং সমাজকর্মী হিসেবে জন সমাজে বেশ পরিচিত। 

পিছিয়ে নেই মহিলা প্রার্থীরা। তারাও মা-বোনদের ঘরে ঘরে গিয়ে ভোট প্রার্থনা করছেন। সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর প্রার্থী নাহিদা পারভীন বলেন, আমি মানুষের জন্য সবসময় কাজ করি। মানুষের বিপদে-আপদে পাশে দাঁড়াই। আশা করছি, ভোটাররা আমাকে বঞ্চিত করবেন না। আগামী কাল ৩০শে জানুয়ারী, শনিবার দৌলতখান পৌরসভায় ভোট গ্রহণ হবে। উক্ত নির্বাচনে মেয়র পদে দুইজন, কাউন্সিলর পদে ২৫ জন এবং মহিলা কাউন্সিলর পদে ৮জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

দৌলতখান  পৌরসভার ভোটার সংখ্যা ১৮ হাজারের অধিক।

শেয়ার করুন
পূর্ববর্তী পোষ্ট
পরবর্তী পোষ্ট