ঝিকরগাছার কাজল রায়হানের ভাগ্নে অভি ইসলাম প্রান্ত ধর্ষণ মামলায় পুলিশের হাতে গ্রেফতার

ঝিকরগাছার কাজল রায়হানের ভাগ্নে অভি ইসলাম প্রান্ত ধর্ষণ মামলায় পুলিশের হাতে  গ্রেফতার

আব্দুল জব্বার, স্টাফ রিপোর্টার।।যশোরের ঝিকরগাছার উপজেলার কৃতীপুর গ্রামের এক কিশোরী স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে। রাজধানী ঢাকায় রুপালি পর্দার নায়িকা বানানোর স্বপ্ন দেখিয়ে, যশোর শহরের পুরাতন কসবা কাজীপাড়ার অভি ইসলাম প্রান্ত, নামের এই যুবক গত বৃহস্পতিবার তাকে ধর্ষণ করে। ধর্ষণের শিকার ওই কিশোরী ঝিকরগাছার এক বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণীর ছাত্রী।
 
অভিযুক্ত অভি ইসলাম প্রান্ত ঝিকরগাছায় তার মামা কাজল রায়হানের বাড়িতে থাকেন। তার বিরুদ্ধে অস্ত্র মাদকসহ অনুমানিক ১৭টি মামলা রয়েছে। ঝিকরগাছা থানায় দায়ের করা অভিযোগের ওই স্কুলছাত্রী দাবি করেছে, অভি ইসলাম প্রান্তের মামা কাজল রায়হানের রাজধানী পান্থপথে একটি অ্যাড ফার্ম রয়েছে। সেখানে কাজের মাধ্যমে মিডিয়ায় নায়িকা বানানোর প্রতিশ্রুতি করে দেয়ার কথা বলে প্রান্ত, ওই ছাত্রীকে তার মামার বাসায় যেতে বলে। তাঁর কথামতো গত বৃহস্পতিবার বিকালে ওই বাড়িতে গেলে প্রান্ত তাকে জোর করে ধর্ষণ করে। 

মামলা ছাড়াও ঝিকরগাছা থানায় খুন, ধর্ষণ, দ্রুত বিচার আইন, মাদক, চাঁদাবাজি, মারামারি অস্ত্র আইনের মামলা সহ মোট ১৭টি মামলা রয়েছে।

ঝিকরগাছা থানা পুলিশের অভিযানে ধর্ষণ মামলার আসামী ও লিস্টভুক্ত সন্ত্রাসী অভি ইসলাম প্রান্ত (২৬), অস্ত্র-গুলিসহ পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে।

ঝিকরগাছার থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুর রাজ্জাক সাহেবের, দিকনির্দেশনায় এস.আই কাজী মোঃ সাহিদুজ্জামান, মোঃ হেলাল উজ্জামান, এ.এস.আই মোঃ আনিছুর রহমান, এ.এস.আই মোঃ সহিদ হোসেন সঙ্গীয় ফোর্সসহ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে, উপজেলার বাঁকড়া এলাকায় বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে লিস্টভুক্ত সন্ত্রাসী ও ঝিকরগাছা থানার মামলা নং-১১, তারিখ-১৬-০১-২০২১ ইং, ধারা-২০০০ সালের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন (সংশোধনী-০৩ এর ৭-৯ (১) এর আসামী অভি ইসলাম প্রান্তকে ইং-১৭-০১-২০২১ ইং তারিখে ১০.১০ মিনিটের সময় ঝিকরগাছা থানাধীন বাঁকড়া পাঁচ রাস্তার মোড়ে সোহাগ ষ্টোরের সামনে পাকা রাস্তার থেকে গ্রেফতার করেন ঝিকরগাছা থানা পুলিশ। এবং আসামীর নিকটে থাকা একটি রেজিষ্ট্রেশন বিহীন নীল কালো রংয়ের  FAZER VERSION 2.0  মোটর সাইকেল ও ০৩ টি মোবাইল ফোন জব্দ করেন।

গ্রেফতারের পরবর্তী আসামী অভি ইসলাম প্রান্ত এর স্বীকারোক্তি মতে ঝিকরগাছা উপজেলার কাটাখাল বঙ্গবন্ধু পার্কের পশ্চিম পার্শ্বের, বটগাছের গোড়ায় মাটির নিচ থেকে তার বিভিন্ন অপকর্মে ব্যবহৃত ১টি দেশীয় পিস্তল ও ১ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করেন এস.আই হেলাল উজ্জামান। 

সাক্ষীদের সামনে বা সম্মুখ্যে ১৮-০১-২০২১ ইং তারিখে রাত্র ১.৩০ মিনিটের সময় জব্দ তালিকা জব্দ করেন। আসামীর বিরুদ্ধে ঝিকরগাছা থানার মামলা নং-১৩, 

তারিখ-১৮-০১-২০২১, ধারা-১৮৭৮ সালের অস্ত্র আইন এর ১৯-এ রুজু করে বিজ্ঞ আদালতে  সোপর্দ করা হয়। আসামীর বিরুদ্ধে উক্ত মামলা ছাড়াও ঝিকরগাছা থানায় খুন, ধর্ষণ, দ্রুত বিচার আইন, মাদক, চাঁদাবাজি, মারামারি অস্ত্র আইনের মামলা আছে বলে জানা যায়।

আসামীর বিরুদ্ধে থাকা মামলা সমূহঃ
১। ঝিকরগাছা থানার মামলা নং- ১০(০৩)১২, ধারা- আইন-শৃঙ্খলা বিঘ্নকারী অপরাধ (দ্রুত বিচার) আইন, ২০০২ সংশোধনী ২০০৯ এর ৪/৫
২। ঝিকরগাছা থানার মামলা নং- ০৬(৬)১৩, ধারা- আইন-শৃঙ্খলা বিঘ্নকারী দ্রুত বিচার এর ৪-৫-৩।
৩। ঝিকরগাছা থানার মামলা নং-৫(০১)১৩, ধারা- আইন-শৃঙ্খলা বিঘ্নকারী অপরাধ (দ্রুত বিচার) আইন, ২০০২ সংশোধনী ২০০৯ এর ৫-৪
৪। ঝিকরগাছা থানার মামলা নং- ১৭(১২)১৪, ধারা-১৪৩-৪৪৭-৪৪৮-৩২৩-৩০৭-৩২৫-৫০৬পিসি,
৫। ঝিকরগাছা থানার মামলা নং- ৩৮(৪)১৪, ধারা- ১৪৩-৩২৩-৩২৪- ৩২৬ পিসি,
৬। ঝিকরগাছা থানার মামলা নং- ৯(৮)১৫,  ধারা-১৪৩-৩৪১-৩২৩-৩২৬ -৩২৪-৩০৭-৪২৭-৫০৬ পিসি,
৭। ঝিকরগাছা থানার মামলা নং- ১৫(৪)১৫, ধারা-৩২৩-৩৭৯-৫০৬পিসি,
৮। ঝিকরগাছা থানার মামলা নং- ২১(০২)১৫, ধারা-৪৪৮-৩২৩-৩২৬- ৩০৭-৩৭৯-৫০৬ পিসি,
৯। ঝিকরগাছা থানার মামলা নং- ১৪(১২)১৭, ধারা-১৪৩-৩৪১-৩২৪-৩২৬ -৩০৭-৩০২-৩৪ পিসি,
১০। ঝিকরগাছা থানার মামলা নং- ২১(১০)১৭, ধারা-৩৪১-৩৪২-৩৬৫-৩৮৫-৩২৩-৫০৬ পিসি,
১১। ঝিকরগাছা থানার মামলা নং- ১৪(১০)১৭, ধারা-১৪৩-৩২৩-৩২৫-৩০৭-৩৮৫-৩৮৬-৫০৬পিসি,
১২। ঝিকরগাছা থানার মামলা নং- ১০(৭)১৭, ধারা-১৪৩-৩৪১-৩২৩-৩২৫-৩০৭-৩৫৪-৩৭৯-৫০৬ পিসি,
১৩। ঝিকরগাছা থানার মামলা নং-০২, তারিখ-০১-০৬-১২, ধারা-১৪৩- ৩২৬-৩০৭-৩৭৯ পিসি,
১৪। ঝিকরগাছা থানার মামলা নং-২৯(৯)১৫ ধারা-১৮৭৮ সালের আর্মস এ্যাক্টর ১৯-এ
১৫। ঝিকরগাছা থানার মামলা নং-১৫(১২)১৭, ধারা- ১৯-এ ১৮৭৮ সালের অস্ত্র আইন;
১৬। ঝিকরগাছা থানার মামলা নং-১৬(১২)১৭; ধারা- ১৯(১) এর ১ (খ) ১৯৯০ সালের মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন।
১৭। ঝিকরগাছা থানার মামলা নং-১১, তারিখ-১৬-০১-২০২১ ইং, ধারা-২০০০ সালের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন (সংশোধনী/০৩) এর ৭-৯ (১)।

জনগণের স্বত:স্ফূর্ত অংশগ্রহণে পৌর নির্বাচন সুষ্ঠু, শান্তিপূর্ণভাবে অনুষ্ঠিত হচ্ছে

জনগণের স্বত:স্ফূর্ত অংশগ্রহণে পৌর নির্বাচন সুষ্ঠু, শান্তিপূর্ণভাবে অনুষ্ঠিত হচ্ছে

নিউজ ডেস্কঃ তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, জনগণের স্বত:স্ফূর্ত অংশগ্রহণে পৌর নির্বাচন সুষ্ঠু, শান্তিপূর্ণভাবে অনুষ্ঠিত হচ্ছে। দ্বিতীয় ধাপের নির্বাচনেও সার্বিকভাবে ৬১ শতাংশ ভোটার উপস্থিতি ছিল। ইভিএম ভোটেও উপস্থিতি ছিল ৫৭ শতাংশের বেশি। অতীতের মতো অনাকাঙ্খিত দু-একটি বিচ্ছিন্ন ঘটনা হয়েছে। ভারতে ২০১৮ সালের পঞ্চায়েত নির্বাচনে ১৯ জন প্রাণ হারিয়েছিল। সেই তুলনায় আমাদের দেশে এ নির্বাচন অনেক শান্তিপূর্ণ হয়েছে। সোমবার সচিবালয়ে তথ্য মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে সমসাময়িক বিষয় নিয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে তিনি এসব কথা বলেন।

ড. হাছান বলেন, দ্বিতীয় দফায় আওয়ামী লীগ ৬০ শতাংশের বেশি আর বিএনপি পেয়েছে ১৮ শতাংশ ভোট। প্রথম দফায় বিএনপির মাত্র ২ জন প্রার্থী নির্বাচিত হয়েছিল, এবার ৪জন। এ নির্বাচনের পর বিএনপি মহাসচিব যে বক্তব্য দিয়েছেন, সেটি স্বাভাবিক। প্রথম এবং দ্বিতীয় নির্বাচনেই তারা জনগণ কর্তৃক প্রচন্ডভাবে প্রত্যাখ্যাত হয়েছে। তাদের দুর্বলতা ঢাকতে আর মুখ রক্ষার জন্য এসব বক্তব্য দিচ্ছেন। জনগণ থেকে বিচ্ছিন্ন এবং স্থানীয় নির্বাচনে তাদের যে সাংগঠনিক দুর্বলতা তা মেনে নিয়ে তাদের কর্মপরিকল্পনা নেয়ার অনুরোধ করছি। তবেই বিএনপি লাভবান হবে। এরপরেও বিএনপি কয়েকটি আসনে নির্বাচিত হয়েছে।

সহিংসতার কথা উল্লেখ করে তথ্যমন্ত্রী বলেন, সিলেটের একটি পৌরসভায় বিএনপির কর্মীরা আমাদের প্রার্থীর গাড়ি ভেঙ্গে দিয়েছে, অনেকে আহত হয়েছেন। তারা এরকম বহু জায়গায় হামলা চালিয়েছে। বিদ্রোহী প্রার্থী প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আমাদের বিদ্রোহী প্রার্থীদের ব্যাপারে দলের গঠনতন্ত্র অনুযায়ী ইতিপূর্বেও সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। এখনো যারা বিদ্রোহী হয়েছেন তাদের ব্যাপারেও সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। মির্জা আব্দুল কাদেরকে নিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে ড. হাছান বলেন, তিনি তার মূল প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি ও জামায়াতের প্রার্থীদের সম্মিলিত ভোটের চেয়ে তিনগুণ ভোট বেশি পেয়েছেন। এজন্য কাদের মির্জা নিশ্চয়ই অভিনন্দন পাওয়ার যোগ্য।

মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সাম্প্রতিক বক্তব্য 'বাংলাদেশ ভবিষ্যতে আল-কায়েদার কর্মক্ষেত্র হয়ে উঠতে পারে'- এবিষয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তথ্যমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশে আল-কায়েদার কোনো উপস্থিতি নেই। যুক্তরাষ্ট্রের মতো একটি দেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী অজ্ঞতাবশত যখন এই বক্তব্য রাখেন, সেটি খুবই দুঃখজনক। সরকারের পক্ষ থেকে এর তীব্র প্রতিবাদ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে জানানো হয়েছে। আজকের বাস্তবতায় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে যেভাবে সহিংসতা দেখা দিয়েছে, সেখানে পার্লামেন্টে হামলায় কয়েকজন নিহত হয়েছেন, যা আমাদের দেশ কিম্বা আশেপাশের কোনো দেশে কখনো হয়নি। এফবিআই তথ্য দিচ্ছে, তাদের আশঙ্কা যুক্তরাষ্ট্রের নতুন প্রেসিডেন্ট শপথ নেয়ার দিন দিন সারাদেশে সহিংসতা ছড়াতে পারে। পৃথিবীর অন্যান্য দেশে সন্ত্রাসবাদ দমন করা আমাদের সম্মিলিত দায়িত্ব এবং লক্ষ্য। কিন্তু বর্তমান প্রেক্ষাপটে আমি মনে করি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের আভ্যন্তরীণ সন্ত্রাসবাদ এবং বর্ণবাদ এ দুটির ব্যাপারে তাদের আরো মনোযোগী হওয়া প্রয়োজন।

সম্প্রতি রাজধানীর একটি অভিজাত হোটেলে বিএনপি ও জামায়াতের দোয়া মাহফিলে সরকারের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করা হয়েছে- এবিষয়ে প্রশ্ন করা হলে তথ্যমন্ত্রী বলেন, আমরা সবসময় বলে আসছি, জনগণ কর্তৃক প্রত্যাখ্যাত বিএনপি এবং দেশে আরো কিছু গোষ্ঠি সরকারের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত। শেষ পর্যন্ত দেখতে পেলাম, দোয়া-মাহফিলকেও ষড়যন্ত্রের অংশ এবং উপলক্ষ্য হিসেবে নেয়া হয়েছে। এটি আসলেই দুঃখজনক। এ ধরণের ষড়যন্ত্র তারা আগেও করেছে। কিন্তু এগুলো করে লাভ হবে না।

তথ্যের উৎসঃ ভোরের কাগজ  

শ্যামনগর ফুটবল রেফারি অ্যাসোসিয়েশনের কমিটি গঠন

শ্যামনগর ফুটবল রেফারি অ্যাসোসিয়েশনের কমিটি গঠন

হুদা মালী,(শ্যামনগর)প্রতিনিধি: সাতক্ষীরা শ্যামনগর উপজেলার ফুটবল রেফারি অ্যাসোসিয়েশনের কমিটি গঠন করা হয়। সোমবার বিকাল ৪টায় শ্রীফলকাটি আলিফ কংক্রিট ব্রিকস হলরুমে কমিটি গঠন অনুষ্ঠিত হয়। বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের শ্যামনগর উপজেলায় রেফারি  অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক শেখ তৈয়বুর রহমান বাবলু সভাপতিত্বে । আগামী তিন বছরের  জন্য শ্যামনগর ফুটবল রেফেরী অ্যাসোসিয়েশন গঠন করা হয়। সভায় সর্বসম্মতিক্রমে সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের আইন অনুযায়ী পদাধিকারবলে সভাপতি শ্যামনগর থানার অফিসার ইনচার্জ নাজমুল হুদা ও শেখ তৈবুর রহমান বাবলুকে সাধারণ সম্পাদক করে। এছাড়া বিভিন্ন টুর্ণামেন্টে রেফারি বরাদ্দ কমিটিতে শেখ আলমগীর হোসেন, মোঃ মনিরুল ইসলাম প্রধান শিক্ষক ও এমএম, মজনু ইলাহী সহকারী শিক্ষক। এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন সিনিয়র রেফারি জি এম জাহাঙ্গীর কবির , আবু নাঈম, মিজানুর রহমান,আবু তালেব, রিয়াজুল ইসলাম বাচ্চু, মাস্টার আব্দুল হামিদ, মোহাম্মদ মহিবুল্লাহ, মামুন, মাসুম, সোহাগ, রিয়াদ, ইলিয়াস ও রাকিব,আবু নাঈম প্রমুখ।

বিপুল ভোটের ব্যবধান বিএনপির নেতিবাচক রাজনীতিকে জনগণের প্রত্যাখ্যান

বিপুল ভোটের ব্যবধান বিএনপির নেতিবাচক রাজনীতিকে জনগণের প্রত্যাখ্যান

নিউজ ডেস্ক  : আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, মানুষ উন্নয়ন চায় বলেই পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থীরা বিপুল ব্যবধানে বিজয়ী হয়েছেন।

সেতুমন্ত্রী সোমবার (১৮ জানুয়ারি) সকালে চার দিনব্যাপী অগ্নিনিরাপত্তা বিষয়ক প্রশিক্ষণ কর্মসূচির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন। তিনি তার সরকারি বাসভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে অনুষ্ঠানে যুক্ত হন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, দ্বিতীয় ধাপের পৌরসভা নির্বাচনে সব কেন্দ্রে ব্যাপক সংখ্যক ভোটারের উপস্থিতি ছিল। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকার দেশের সব সেক্টরে উন্নয়ন করে চলছে। মানুষ এই সরকারের কাছে আরও উন্নয়ন চায় বলেই আওয়ামী লীগের প্রার্থীরা বিপুল ব্যবধানে জয়ী হয়েছেন।

সেতুমন্ত্রী বলেন, বিএনপির প্রার্থীরা যেখানে সক্রিয় এবং জনপ্রিয় ছিল সেখানে তারা বিজয়ী হয়েছেন। এমনকি তাদের দুজন বিদ্রোহী প্রার্থীও বিজয়ী হয়েছেন। এখন কোনো দোষ খুঁজে না পেয়ে ভোটের ব্যবধান বেশি বলছেন।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়ন ও অর্জনের কারণেই আওয়ামী লীগের প্রার্থী বেশি ভোটে জয়ী হয়েছেন, এটাই স্বাভাবিক। জনগণের কাছে বিএনপি কী বলে ভোট চাইবে, তাদের তো বলার কিছু নেই।

তিনি বলেন, আগুন সন্ত্রাস আর মানুষ পুড়িয়ে মারা এবং দুর্নীতিতে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন হওয়া ছাড়া তাদের জনগণের কাছে আর কি বা বলার আছে? ভোট কেন্দ্রে না এসে, প্রচার না চালিয়ে বিএনপি ভোটারদের আস্থা হারিয়েছে। আওয়ামী লীগ প্রার্থীদের বিজয় উন্নয়নের বিজয়। বিপুল ভোটের ব্যবধান বিএনপির নেতিবাচক রাজনীতিকে জনগণের প্রত্যাখ্যান

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ঘোষিত স্কোয়াডে পেসারের সংখ্যা- ৬

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ঘোষিত স্কোয়াডে পেসারের সংখ্যা- ৬

নিউজ ডেস্কঃ ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজের জন্য ঘোষিত স্কোয়াডে পেসারের সংখ্যা ৬ জন- রুবেল হোসেন, তাসকিন আহমেদ, মোস্তাফিজুর রহমান, মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন, হাসান মাহমুদ ও শরিফুল ইসলাম। এদের সঙ্গে যোগ হলেন টেস্টের প্রাথমিক স্কোয়াডে থাকা খালেদ আহমেদ। সবমিলিয়ে সাত পেসার নিয়ে সোমবারের অনুশীলন পর্ব কাটাল বাংলাদেশ ক্রিকেট দল।

স্কোয়াডে ছয় পেসারের বিপরীতে বিশেষজ্ঞ স্পিনার মাত্র একজন- তাইজুল ইসলাম। এছাড়া স্পিনিং অলরাউন্ডার হিসেবে আছেন সাকিব আল হাসান, মেহেদি হাসান মিরাজ, শেখ মেহেদি হাসান ও আফিফ হোসেন ধ্রুব। পেস বোলারদের আধিক্যই দিয়েছে বার্তা, চিরাচরিত স্পিন নির্ভর আক্রমণ থেকে বেরিয়ে এবার হয়তো গতিময় বোলিংয়ের দিকে ঝুঁকছে বাংলাদেশ দল। যা নিশ্চিত করেছেন হেড কোচ রাসেল ডোমিঙ্গো।

সোমবার দুপুরে ওয়ানডে সিরিজকে সামনে অনলাইন সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন টাইগারদের হেড কোচ রাসেল ডোমিঙ্গো। যেখানে উঠে এসেছিল দলের পেস-স্পিন বিষয়ক পরিকল্পনার কথাও। তখন ডোমিঙ্গো সাফ জানিয়েছেন, স্পিন নির্ভরতা থেকে বের হতে চান তিনি, একাদশে সবসময় রাখতে চান অন্তত তিন পেসার।

তবে কন্ডিশনও বিবেচনায় আনা হবে জানিয়ে ডোমিঙ্গো বলেন, 'বোলিং আক্রমণের চেহারা কন্ডিশনের উপর নির্ভর করবে। আমাদের সাকিব আছে, যে ১০ ওভার বল করবে। উপমহাদেশের আরেকজন বিশেষজ্ঞ স্পিনার দলে চাইব। সে কে হবে, এটা আমাদের ঠিক করতে হবে। উপমহাদেশে ২০ ওভার স্পিনারদের দিয়ে করাতে চাইবে সবাই। সঙ্গে এক-দুই জন অনিয়মিত স্পিনার থাকতে পারে।'

পাশাপাশি একাদশে পেসারদের গুরুত্ব বুঝিয়ে তিনি বলেন, 'দলে যথেষ্ট পেসার থাকাটা নিশ্চিত করতে হবে, যেন উইকেটে কোনো সুবিধা থাকলে সেটা তারা নিতে পারে। বিশেষ করে এই শীতের সময় যখন খেলা শুরু হবে সকাল সাড়ে ১১টায়। কুয়াশা ও শিশিরের জন্য প্রথম ঘণ্টায় একটু মুভমেন্ট থাকতে পারে। দুই দিকই কাভার করাটা আমাদের নিশ্চিত করতে হবে।'

টাইগার হেড কোচ জোর দিয়ে বলেছেন, ওয়ানডে একাদশে সবময়ই তিন পেসার চান তিনি, 'এই বিষয়ে কোনো সন্দেহ নেই, আমরা ওয়ানডেতে সব সময় তিন পেসার খেলাতে চাই। এই মুহূর্তে দলে রোমাঞ্চকর কিছু তরুণ পেসার আছে। শরিফুল, হাসান মাহমুদ আছে। রুবেল, মুস্তাফিজ খুব ভালো বোলিং করছে। উন্নতির ছাপ আছে তাসকিনের বোলিংয়ে।'

তিনি আরও যোগ করেন, 'দলে জায়গার জন্য অনেকেই লড়াই করছে। ওদের ওয়ানডে খেলার সুযোগ আমাদের করে দিতে হবে। কেবল স্পিননির্ভর একটা দলে পরিণত হতে পারি না আমরা। ছয় সপ্তাহের মধ্যে আমাদের নিউজিল্যান্ডে যেতে হবে। আমি বলে দিতে পারি, সেখানে আমরা কেবল একজন স্পিনার খেলাব। তাই আমাদের নিশ্চিত করতে হবে, আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের জন্য আমাদের পেসাররা তৈরি। তিন পেসার ছাড়া আমি কোনো ওয়ানডে খেলব না।'

পটিয়ার সুচক্রদন্ডী নজরুল ইসলাম কারামুক্তিলাভে এলাকাবাসীর সংবর্ধনা

পটিয়ার সুচক্রদন্ডী  নজরুল ইসলাম   কারামুক্তিলাভে এলাকাবাসীর  সংবর্ধনা

পটিয়া (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধিঃ- চট্টগ্রামের পটিয়ার পৌরসভার ২ নং ওয়ার্ড সুচক্রদন্ডী এলাকার সমাজ কর্মী ও সাবেক কাউন্সিলর প্রার্থী   নজরুল ইসলাম সিদ্দিকী মিথ্যা মামলায় কারামুক্তিলাভে এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে  সংবর্ধনা দেওয়া হয়েছে। ১৮ জানুয়ারি রবিবার   বিকালে এলাকাবাসীর  লোকজন নজরুল ইসলাম সিদ্দিকী'কে ফুলের শুভেচ্ছা  জানিয়ে  সংবর্ধনা দেওয়া হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন ২ নং ওয়ার্ড   আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও পৌর আওয়ামীলীগ নেতা আসন্ন ১৪ ফেব্রুয়ারী  পটিয়া পৌর নির্বাচনে ২ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর প্রার্থী   নজরুল ইসলাম বিপ্লব, পটিয়া পৌরসভা আওয়ামীলীগ সহ- প্রচার সম্পাদক মোঃ নাজিম উদ্দীন, পটিয়া পৌরসভা  যুবলীগের কার্যকরী কমিটির সদস্য আবদুল মন্নান,মোঃ আরিফ,  মোঃ সেলিম, মোঃ আইয়ুব সওঃ, ইসমাইল সওঃ, গাজী মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম, জুলন দাশ পিন্টু, অলন শীল,মোঃ সাগর,মোঃ জহির,   অরুণ শীল, মোঃ জালাল  প্রমুখ।

ভেলাগুড়ি ইউপি নির্বাচনে নৌকার মনোনয়ন চান এমদাদ হোসেন

ভেলাগুড়ি ইউপি নির্বাচনে নৌকার মনোনয়ন চান এমদাদ হোসেন

মোঃ ফরহাদ হোসেন লালমনিরহাট জেলা প্রতিনিধিঃ খুব শীঘ্রই স্থানীয় সরকার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে নির্বাচন কমিশনের এমন ঘোষণা পাওয়ার পরপরই তুমুল তোরজোড় শুরু করেছেন প্রার্থীরা।

লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলার ভেলাগুড়ি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশা করেছেন মোঃ এমদাদ হোসেন। জানা গেছে, লালমনিরহাট জেলার হাতীবান্ধা উপজেলার ভেলাগুড়ি ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে অংশগ্রহণের জন্য ইতোমধ্যে সমাজসেবামূলক অনেক কার্যক্রম সম্পন্ন করে জনগণের কাছে সাড়া ফেলেছেন এমদাদ হোসেন। 

সম্প্রতি মহামারী করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে ইউনিয়নের সাধারণ মানুষের পাশে সহযোগী হিসেবে দাড়িয়েছেন তিনি। নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে পুরো ইউনিয়নজুড়ে সবার সাথে মিলেমিশে কাজ করার মানসিকতা নিয়ে ছুটে চলছেন এলাকার পরিচিত মুখ এমদাদ হোসেন।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেতে স্থানীয় সংসদ সদস্য, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সাবেক প্রতিমন্ত্রী মোতাহার হোসেন এমপির আস্থাভাজন ও নয়নের মনি হয়ে উঠেছেন এমদাদ হোসেন।

ইতিমধ্যে নানারকম জনকল্যাণমূলক কাজ করার কারণে ভেলাগুড়ি ইউনিয়নের মানুষ তাকেই চেয়ারম্যান হিসেবে নির্বাচিত করতে চান।ভেলাগুড়ি ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা গেছে মানুষজন এমদাদ হোসেন এর পক্ষে নির্বাচনী প্রচারণায় ইতিমধ্যেই অংশগ্রহণ করেছেন, তারা চাচ্ছেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ থেকে যেন এমদাদ হোসেনকেই মনোনয়ন দেওয়া হয়।

এ বিষয়ে এমদাদ হোসেন এর সাথে কথা হলে তিনি জানান বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন পেয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলে ভেলাগুড়ি ইউনিয়নের সার্বিক পরিস্থিতি উন্নয়নে তিনি কাজ করবেন।