ভোলার দৌলতখানে ফিশিংবোট মালিকের জরিমানা

মোঃ আওলাদ হোসেন,জেলা প্রতিনিধি , ভোলাঃ দেশের অর্থনীতির সিংহভাগ অর্থ যোগান দেয় সামুদ্রিক মাছ।প্রতিবছর ভিবিন্ন সময় সরকার মাছের ধরার অভিযান দিয়ে থাকে।কখনো ডিম ছাড়ার সময় কখনো বা ছোট ঝাটকা ইলিশ বড় হওয়ার সময়।তবে ঝাটকা ইলিশ ধরার অভিযান বার মাস।তারই ধারাবাহিকতায় বঙ্গোপসাগরে ৬৫ দিনের মাছ ধরার নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে মাছ শিকার করে ঘাটে ফিরে এলে দৌলতখানে তিন ফিশিংবোট মালিককে ১৫ হাজার টাকা করে মোট ৪৫ হাজার টাকা জরিমানা করেছে মৎস্য বিভাগ। এসময় ফিশিংবোটে মজুদকৃত দেড় মন সামুদ্রিক মাছ জব্দ করা হয়। জব্দকৃত মাছ নিলামে ১৭ হাজার ১৫০ টকায় বিক্রি করা হয়।

উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা মাহফুজুল হাছনাইন জানান, '২০ মে থেকে ২৩ জুলাই পর্যন্ত ৬৫ দিন সমুদ্রে সকল প্রকার মাছ আহরণ নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছে সরকার। গত রোববার নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে সমুদ্রে মাছ শিকার করে তিনটি ফিশিংবোট উপজেলার পাতারখাল মাছঘাট এলে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে তিন ফিশিংবোট মালিককে ৪৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয় এবং জব্দকৃত সামুদ্রিক মাছ নিলামে বিক্রি করা হয়।

এদিকে সোমবার উপজেলা মৎস্য বিভাগের অভিযানে দৌলতখানের সুবেদারের মোড় সংলগ্ন রিপন মিয়ার মাছঘাট থেকে বিপুল পরিমাণ নিষিদ্ধ জাল, ৬০ কেজি ইলিশের পোনা , একটি ইঞ্জিনচালিত নৌকা ও অবৈধ ভাবে মাছ শিকার করার ১০০ খুঁটি জব্দ করা হয়। পরে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মহুয়া আফরোজের উপস্থিতিতে নিষিদ্ধ জাল, খুঁটি, আগুনে পুড়িয়ে ধ্বংস করা হয়। জব্দকৃত ইলিশের পোনা বিভিন্ন মাদ্রাসায় বিতরণ করা হয়।

শেয়ার করুন

প্রকাশকঃ

অফিসঃ হাজী সিরাজুল ইসলাম সুপার মার্কেট, মোহাম্মদপুর মোড়, ছুটিপুর রোড, ঝিকরগাছা, যশোর।

পূর্ববর্তী প্রকাশনা
পরবর্তী প্রকাশনা