বঙ্গোপসাগরে দেশীয় জলসীমায় দুই ফিশিং ট্রলারসহ ২৮ ভারতীয় জেলে আটক

মোঃএরশাদ হোসেন রনি, মোংলাঃবঙ্গোপসাগরে দেশীয় জলসীমায় মাছ শিকারের অপরাধে দুই ফিসিং ট্রলারসহ ২৮ ভারতীয় জেলেকে আটক করেছে বাংলাদেশ কোস্টগার্ডের জাহাজ 'বিসিজিএস স্বাধীন বাংলা।'
এ সময় জব্দ করা হয়েছে এফবি শঙ্খদীপ ও এফবি স্বর্ণতারা নামের দুটি ভারতীয় ট্রলার ও  ট্রলারে থাকা  বিভিন্ন প্রজাতির মাছ ও জাল-দড়ি।

মোংলা কোস্টগার্ড পশ্চিম জোনের গোয়েন্দা দপ্তর সূত্রে জানা গেছে, বৃহস্পতিবার (২৮ জানুয়ারী) ভোর রাতে মোংলা সমুদ্র বন্দরের অদূরে বঙ্গোপসাগরের ফেয়ারওয়ে বয়া এলাকা থেকে দুই ট্রলারসহ ওই ভারতীয় জেলেদের আটক করা হয়। বাংলাদেশ কোস্টগার্ডের জাহাজ 'বিসিজিএস স্বাধীন বাংলা' বঙ্গোপসাগরের ফেয়ারওয়ে বয়া এলাকায় টহলদান কালে ভারত - বাংলাদেশ  জলসীমার ১০. ২ নটিক্যাল মাইল ভেতরে অবৈধ অনুপ্রবেশ করে শিকারের সময় ট্রলারসহ ভারতীয় জেলেদের আটক করে।
আটক এ সকল জেলেদের বাড়ি ভারতের দক্ষিণ-চব্বিশ পরগনা জেলার বিভিন্ন এলাকায় বলে জানা গেছে।
আটককৃত জেলেদের শুক্রবার (২৯ জানুয়ারী) সন্ধ্যায় ট্রলার ও মাছসহ মোংলা থানায় স্থানান্তর করেছে কোস্টগার্ড।


আটকদের বিরুদ্ধে সামুদ্রিক মৎস্য অধ্যাদেশ ১৯৮৩ এর ২২ ধারায় মামলা দায়েরের পর জেলহাজতে পাঠানোর কথা জানিয়েছেন মোংলা থানার অফিসার ইনচার্জ মো. ইকবাল বাহার চৌধুরী।
মোংলা কোস্টগার্ড পশ্চিম জোনের গোয়েন্দা কর্মকর্তা লেফটেন্যান্ট মাজহারুল হক জানান, বঙ্গোপসাগরে ভারতীয় জেলেদের অবৈধ অনুপ্রবেশ ঠেকাতে কোস্টগার্ডের পক্ষ থেকে নিয়মিত টহল অব্যাহত রয়েছে। তিনি আরো জানান,সুন্দরবনে জলদস্যু বনদস্যুদের অপতৎপরতার বিরুদ্ধে জিরো ট্রলারেন্স নীতি গ্রহণ করেছে বাংলাদেশ কোস্টগার্ড। এছাড়াও কোস্টগার্ডের এখতিয়ারভূক্ত এলাকায় সমূহে মাদক ব্যবসায়ীদের নির্মুল করা সহ ও বন্যপ্রাণী পাচারকারী এবং নিধনকারীদের বিরুদ্ধে কোস্টগার্ড পক্ষ থেকে নিয়মিত অভিযান অভিযান অব্যাহত থাকবে। এর আগে গত ১ ডিসেম্বর ভোর রাতে একই এলাকা থেকে কোস্টগার্ড জাহাজ সোনার বাংলা ও ১৭ ভারতীয় জেলে ও ২২ ডিসেম্বর বিসিজিএস অপরাজেয় বাংলা ১৬ ভারতীয় জেলেকে আটক করে মোংলা থানায় হস্তান্তর করেছে। এ পর্যন্ত বঙ্গোপসাগরে মাছ শিকারের অপরাধে ৪ ট্রলারনহ মোট ৬১ জেলেকে আটক করা হয়েছে বলে জানিয়েছে মোংলা কোস্টগার্ড পশ্চিম জোন।

শেয়ার করুন
পূর্ববর্তী পোষ্ট
পরবর্তী পোষ্ট