কিশোরগঞ্জের উত্তর দুরাকুটি সড়কের বেহাল দশায় জনদুর্ভোগ চরমে

মোঃ লাতিফুল আজম,নীলফামারী প্রতিনিধিঃ নীলফামারীর কিশোরগঞ্জ বাহাগিলী ইউনিয়নের উ: দুরাকুটি গ্রামের জনবহুল একমাত্র যাতায়াতের সড়কটি যোগাযোগর অনুপযোগী হয়ে বেহাল দশায় নাজেহাল হয়ে পড়েছে।
ইউনিয়নটির উপজেলা শহরের প্রবেশদ্বারের বড় ব্রীজ থেকে হাড়িবেচা পাড়া পর্যন্ত বিভিন্ন জায়গা ধ্বসে যাওয়াসহ ২কিলোমিটার পুরাতন খোয়া বিছানো রাস্তায় ইটের খোয়া এবড়ে থেবড়ে হয়ে সড়কটি পুকুরে ধসে গিয়ে বিভিন্ন জায়গায় অসংখ্য খানাখন্দের সৃষ্টি হয়েছে।এতে বাহাগিলী-নিতাই ইউনিয়নের ২৫ গ্রামের ১৫ হাজার লোক চরম দুর্ভোগে পড়েছেন। বিভিন্ন স্থানে ধ্বসে গিয়ে সংকীর্ণ হয়ে যাওয়া সড়কটি দিয়ে যাত্রীবাহী থেকে শুরু করে পণ্যবাহী অসংখ্য যানবহন চলাচল করায় প্রতিনিয়ত ঘটছে ছোট-বড় দুর্ঘটনা। 
সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, বড় ব্রীজ থেকে ময়দান পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় পর্যন্ত ২ কিলোমিটার সড়কে বিছিয়ে রাখা হয়েছে পুরাতন ইটের খোয়া। যানবাহন চলাচলের জন্য নামমাত্র রোলার দিয়ে পুরাতন খোয়া মেরামত করা হলেও আবারও ইটের খোয়া সরে গিয়ে সড়কটির উপর ইটের খোয়া সয়লাব হয়ে গেছে। সড়কের উপর দিয়ে চলাচলারত পরিবহনের ঝাঁকুনিতে শিশু, বৃদ্ধ গর্ভবতী মহিলা ও মুমূর্ষু  রোগীর প্রাণ যায় যায় অবস্থা। অটোচালক উ: দুরাকুটি গ্রামের আব্দুস সামাদ ডাবরা জানান, এই সড়ক দিয়ে যাত্রী নিয়ে চলাচল একেবারেই অযোগ্য হয়ে পড়েছে। কখন জানি গাড়ি রাস্তার নিচে উল্টে পড়ে যায় । গাড়ি সার্ভিসিংয়ের  জন্য মাসের ২থেকে ৩বার মেকারের কাছে যেতে হয়। ওই গ্রামের আব্দুল আজিজ ও আব্দুল মান্নান ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, এ এলাকার অধিকাংশ মানুষ কৃষি উৎপাদিত পণ্য সামগ্রী বাজারজাত করে জীবিকা নির্বাহ করে থাকে। কিন্তু জনসাধারণে জন্য  গুরুত্বপূর্ণ সড়কটি দীর্ঘদিন যাবৎ সংস্কার না করায় উৎপাদিত কৃষিপণ্য বাজারজাত করতে নানামুখী সমস্যার সম্মুখীন হতে হচ্ছে। সড়কটি যেন এলঅকার মানুষের গলার কাঁটা হয়ে দাঁড়িয়েছে।
এ ব্যাপারে উপজেলা প্রকৌশলী অফিসার মজিদুল ইসলাম জানান, সড়কটি সংস্কারের জন্য টেন্ডার আহবানের মাধ্যমে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান কাজটি নিলেও অর্থ সংকটের কারণে কাজ বন্ধ রয়েছে।

শেয়ার করুন
পূর্ববর্তী পোষ্ট
পরবর্তী পোষ্ট