ডঃ ধর্মসেন মহাস্থবিরের আদর্শ অনুস্মরণ করতে হবে : পটিয়ায় মন্ত্রী বীর বাহাদুর এমপি

সেলিম চৌধুরী স্টাফ রিপোর্টারঃ-চট্টগ্রাম পাবর্ত্য বিষয়ক মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈশিং এমপি বলেছেন, বৌদ্ধের অহিংসা ধর্ম ধারণ করে ড. ধর্মসেন মহাস্থবিরের আদর্শ অনুস্মরণ করতে হবে। তাতে সমাজে অহিংসা দূরে রেখে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বজায় রাখতে সম্ভব হবে। ঊনাইনপুরার কৃতি সন্তান শিক্ষক দীপ্তীময় বড়ুয়া বান্দরবানে শিক্ষকতা করে অনেক আলোকিত মানুষ সৃষ্টি করেছেন। তাঁর সুশিক্ষকায় বান্দরবানে মন্ত্রী, এমপিসহ অনেক সুশিক্ষিত মানুষ তৈরি হয়েছে। এই কৃতি পুরুষের জন্মস্থানে ড. ধর্মসেন মহাস্থবির জন্ম নিয়ে বাংলাদেশী বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের সর্বোচ্চ ধর্মীয় গুরু হিসেবে ধর্মদেশনা দিয়ে গেছেন। তিনি মরেও বৌদ্ধ তথা মানব গোষ্ঠীর কাছে আজীবন স্মরণীয় হবে থাকেব। সোমবার সকালে পটিয়ার পটিয়ার ঊনাইনপুরা লঙ্কারাম বিহারে প্রয়াত ধর্মসন মহাস্থবিরের শ্রদ্ধা নিবেদন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন।

উদযাপন পরিস্থিতির সভাপতি শ্রীমৎ প্রজ্ঞানন্দ মহাস্থবিরের সভাপতিত্বে ও পরিষদের সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক প্রণব বড়ুয়া অর্ণবের পরিচালনায় এতে বক্তব্য রাখেন- অজিত রঞ্জন বড়ুয়া, ড. সংঘপ্রিয় মহাস্থবির, শ্রীমৎ বোধিমিত্র মহাস্থিবর, দেশপ্রিয় বড়ুয়া চৌধুরী, লায়ন আদর্শ কুমার বড়ুয়া, শিক্ষক দীপ্তী বড়ুয়া, বান্দরবান পৌরসভার মেয়র ইসলাম বেবী, অমল কান্তি দাশ, সেহ্নাফ্লু মারমা, প্রজ্ঞাজোতি বড়ুয়া লিটন, সীমান্ত বড়ুয়া, সবুজ বড়ুয়া সাজু, জঙ্গলখাইন ইউপি চেয়ারম্যান গাজী মো. ইদ্রিস, সাবেক চেয়ারম্যান শাহাদাত হোসেন ফরিদ। আলোচনা সভার আগে ড. ধর্মসেনের মরদেহে পুস্পমাল্য অর্পণ করে শ্রদ্ধা নিবেদন জানানো হয় এবং আলোচনা সভার পর আন্ত্যোষ্টিক্রিয়া অনুষ্ঠানের মাঠ পরিদর্শন করেন।

উল্লেখ্য, ড. ধর্মসেন মহাস্থবির'র অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া আগামী বৃহস্পতিবার ও শুক্রবার। এ উপলক্ষে ঊনাইনপুরা লঙ্কারাম বিহারে ও পাশ্ববর্তী মাঠে ধর্মীয় বিভিন্ন অনুষ্ঠান মালার আয়োজন করা হয়েছে।

শেয়ার করুন
পূর্ববর্তী পোষ্ট
পরবর্তী পোষ্ট