পটিয়া সাংবাদিক সন্মেলনে পরিবারের দাবি সাংবাদিক কাদের হত্যা চেষ্টার বিচার দাবি

পটিয়া (চট্টগ্রাম)থেকে সেলিম চৌধুরীঃ চট্টগ্রামের পটিয়া পৌর সদরের গোয়াদন্ডী এলাকায় পেশাগত দায়িত্ব    পালন শেষ করে বাড়ি ফেরার পথে রাতের আধাঁরে সাংবাদিক গোলাম কাদেরকে পথরুদ্ধ করে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে হত্যা চেষ্ঠার সুষ্ঠু তদন্ত ও উপযুক্ত বিচার দাবি করেছে তাঁর পরিবার। গতকাল  বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১০টায় পটিয়া সদরের একটি রেস্তোরায় পরিবারের পক্ষ থেকে সংবাদ সম্মেলন করে এ দাবি জানানো হয়।
সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন আহত গোলাম কাদেরের বাবা মুহাম্মদ ইসমাইল, বড় ভাই নুর কাদের, আবদুল কাদের, বড় বোন নুর নাহার বেগম, ছোট বোন ফেরদৌস আকতার, স্ত্রী সাজেদা খানম, ভাবী জোৎনা  আকতার প্রমুখ। সাংবাদিক গোলাম কাদের হত্যা চেষ্ঠায় জড়িত ব্যক্তিদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করতে প্রধানমন্ত্রী  সহযোগিতা কামনা করেন  সাংবাদিকের বড় ভাই নুর কাদের। তিনি বলেন, আমাদের প্রতিপক্ষ ও তাদের নিয়োজিত সন্ত্রাসীদের কাছে পরিবার পরিজন নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি। তারা আমাদের বাড়ী ভিটি থেকে উচ্ছেদের জন্য যে কোন মূহুর্তে আমাদের মারাত্মক জানমালের ক্ষতি করার আশংকা রয়েছে। এছাড়াও  আমাকে হুমকি দাতা আনোয়ারা উপজেলার বটতলী ইউনিয়নের মহিলা মেম্বার আসামীদের বোন রওশন আকতার মুন্নিকে আইনের আওতায় এনে শাস্তির দাবি করে  মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, ভূমিমন্ত্রী ও হুইপের নিকট দাবী জানাচ্ছি। লিখিত বক্তব্যে নুর কাদের বলেন, গত বছরের জানুয়ারী মাসে আমার পিতার পৈত্রিক জায়গায় একটি পাকা গৃহ নির্মাণ কাজ শুরু করি। উক্ত নির্মাণ কাজ শুরু করার পর প্রতিবেশী মৃত খলিলুর রহমানের ছেলে সাজ্জাদ হোসেন হিরু, শাহাজাহান মিন্টু, মফিজুর রহমান মানিক ও খলিলুর রহমানের কন্যা রওশন আকতার মুন্নির সাথে বিরোধ সৃষ্ঠি হয়। এ বিরোধের জের ধরে তারা বহিরাগত সন্ত্রাসী নিয়ে বেশ কয়েকবার আমার পরিবারের সদস্যদের ওপর হামলা চালায়। এ বিষয়ে পটিয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোতাহেরুল ইসলাম চৌধুরীর সমন্বয়ে সালিশি বৈঠক হয় এবং উভয় পক্ষ আদালতের মামলা নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত কোন ধরনের জায়গা নিয়ে ঝামেলা করবে না মর্মে লিখিত অঙ্গীকার সম্পাদন হয়। কিন্তু আমাদের প্রতিপক্ষরা কোন সালিশ বিচার মানতে রাজি নয়। এমতাবস্থায় সালিশ বিচারের বিষয়ে আমার ভাই সাংবাদিক গোলাম কাদের ভূমিকা রাখায় আমাদের প্রতিপক্ষদের নিকট আমার ভাই গোলাম কাদের রোষানলের শিকার হয়। তাকে কয়েকদফা হত্যার পরিকল্পনা নেয়। এমনকি সন্ত্রাসীদের সাথে ১ লক্ষ টাকার চুক্তিতে আমার ভাইকে হত্যার পরিকল্পনা করে। এর আগে গত ফেব্রুয়ারী মাসে আমাদের প্রতিপক্ষগণ সন্ত্রাসীদের মাধ্যমে আমার ভাই গোলাম কাদেরকে হত্যার চেষ্টা করে। এ দুটি ঘটনায় আমার ভাই গোলাম কাদের গত ১৮ ফেব্রুয়ারী ও ১৮ মার্চ পটিয়া থানায় পৃথক দুটি জিডি করেন। গত ৪ এপ্রিল রাতে আমার ভাই গোলাম কাদের বাড়ী যাওয়ার পথে প্রতিপক্ষরা সন্ত্রাসী নিয়ে আমার ভাইকে হত্যার উদ্দেশ্যে আক্রমণ চালিয়ে এলোপাথারি পিটিয়ে ও কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করে। বর্তমানে সে গুরুতর পটিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছে। এদিকে প্রতিপক্ষরা মামলা তুলে নেয়ার জন্য নানানধরনের হুমকি দিয়ে আসছে।

শেয়ার করুন
পূর্ববর্তী পোষ্ট
পরবর্তী পোষ্ট