কুড়িগ্রামে রাষ্ট্রীয় মযার্দায় সমাহিত করা হয়েছে মুক্তিযুদ্ধের কোম্পানী কমান্ডার আকরাম হোসেনকে

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধিঃ রাষ্ট্রীয় মযার্দায় সমাহিত হলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা কে এম আকরাম হোসেন। কুড়িগ্রামবাসী হারালো জেলার একজন বীর সৈনিক। তিনি  কিডনি  জনিত রোগে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মঙ্গলবার দুপুরে রংপুর সরকারি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মৃত্যু বরন করেন । মৃত্যুকাল তার বয়স হয়েছিল ৬৯ বছর।

মঙ্গলবার দিবাগত রাতে কুড়িগ্রাম সদরের গড়েরপাড় বাজার ঈদগাহ মাঠ প্রাঙ্গণে তার জানাজা নামাজ অনুষ্ঠিত হয়। এরআগে ওইদিন বিকেলে তাকে রাষ্ট্রীয় মযার্দা প্রদান করা হয়। ওইদিন রাতে কুড়িগ্রাম কেন্দ্রীয় কবরস্থানে তাকে সমাহিত করা হয়। মৃত্যুকালে তিনি দুই পুত্র,তিন কন্যা ও এক স্ত্রী সহ অসংখ্য বন্ধু,বান্ধব,গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। 

অকুতোভয় বীর মুক্তিযোদ্ধা কেএম আকরাম হোসেন ১৯৭১ইং সালে মহান মুক্তিযুদ্ধে কুড়িগ্রাম কোম্পানী কমান্ডারের দায়িত্ব থেকে কৃতিত্বের স্মাক্ষর রেখেছিলেন।  মুক্তিযুদ্ধ কালীন সময় আগষ্ট মাসে দূগার্পুরের অর্জুনের ডোরায় রেল ব্রীজে মাইন পুতে পাক সৈন্যবাহীনির ট্রেন উড়িয়ে দেয়া, কুলাঘাট-ফুলবাড়ি নদী পথে নৌকায় পাক বাহিনীর ফুলবাড়ি অভিমুখে যাত্রার সময় তার নেতৃত্বে বন্ধুক যুদ্ধে ৩২জন পাক সৈন্য নিহত হওয়া,বোমা মেরে রতনাই ব্রীজ উড়িয়ে দেয়া সহ অসংখ্য অপারেশনে তিনি নেতৃত দিয়েছিলেন। কুড়িগ্রাম জেলার দু'জন কোম্পানী কমান্ডারের মধ্যে একজন ছিলেন কেএম আকরাম হোসেন। কুড়িগ্রামে মহান মুক্তিযুদ্ধে তিনি  অবদান রেখেছেন। তিনি যুদ্ধ চলাকালীন রাজারহাট,উলিপুর,কুড়িগ্রাম সদর,ফুলবাড়ি,লালমনির হাট কুলাঘাট সহ বিভিন্নস্থানে বীরত্বপূর্ণ অবদান রেখেছেন। কেএম আকরাম হোসেন কুড়িগ্রাম জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক ডিপুটি কমান্ডারও  ছিলেন।

তার মৃত্যুতে জানাজা পূর্ব সংক্ষিপ্ত আলোচনায় বক্তব্য দেন,কুড়িগ্রাম বঙ্গবন্ধু পরিষদের সভাপতি হারুন-অর-রশিদ লাল, সাবেক কুড়িগ্রাম সদর মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আব্দুল বাতেন,মুক্তিযাদ্ধা কেএম মাহফুজার  প্রমূখ।

শেয়ার করুন
পূর্ববর্তী পোষ্ট
পরবর্তী পোষ্ট