দূর্বার তারুণ্য

প্রেস বিজ্ঞপ্তিঃ গতবছর করোনাকালীন সময়ে দূর্বার গতিতে এগিয়ে গিয়েছিল এক তরুণ। যার নাম মুহাম্মদ আবু আবিদ।তিনি করোনা মোকাবিলায় তৈরী করেন দেশব্যাপী আজকের জনপ্রিয় সামাজিক সংগঠন "দূর্বার তারুণ্য"। করোনার প্রথম ঢেউ এর সময় একের পর এক অনন্য উদ্যোগ গ্রহন ও বাস্তবায়ন করে বরাবরই আলোচনায় ছিলেন মুহাম্মদ আবু আবিদ ও তার হাতেগড়া সংগঠন দূর্বার তারুণ্য।

তারই স্বীকৃতি স্বরূপ  আবিদ পেয়েছেন "কোভিড'১৯ সম্মুখ যোদ্ধা" এওয়ার্ড। করোনার ২য় ঢেউ মোকাবিলায় এবারও বসে নেই তিনি। গতবারের ন্যায় এ বছরও মধ্যবিত্তদের নিয়ে কাজ করবেন আবিদ। গতপরশু তার নিজ ফেসবুক প্রোফাইলে তিনি একটি পোস্ট করেন। 

পোস্টটি হল-

"মধ্যবিত্ত" একটু শুনুন,

আবারও ত্রাণ বিতরণ শুরু হয়ে গেছে। সমাজের নিম্ন শ্রেণির মানুষের পাশে দাঁড়াবে অনেক উচ্চবিত্ত। আমি বরাবরই প্রচারে পক্ষে।  প্রচার হলেও যেন মানুষ সাহায্য পায় সে-ই বিষয়ে সবাই খেয়াল রাখবেন। 

আমাদের সমাজে এমন একটা শ্রেণি আছে, যারা কাউকে কিছু বলতে পারে না। ক্ষুধার চেয়ে, তাদের আত্মসম্মান একটু বেশি। সে-ই শ্রেণির নাম মধ্যবিত্ত। আমিও এক মধ্যবিত্ত পরিবারের সন্তান। উচ্চবিত্তের সাথে চলাফেরা আমার। যেসকল মধ্যবিত্ত কষ্ট আছেন,তারা দয়া করে আমাকে জানাবেন। কথা দিলাম,  আমার পরিবারের জন্য ত্রাণ আনলে যতটা গোপন রাখতাম, ঠিক ততটাই গোপন থাকবে আপনাদের পরিচয়।  আমি আমার নাম দিয়ে সমাজে যারা প্রতিষ্ঠিত তাদের কাছ থেকে ভিক্ষা করে আনব। আপনাদের ম্যাসেজ বা ফোনের অপেক্ষায়।

মুহাম্মদ আবু আবিদ, 
সভাপতি, দূর্বার তারুণ্য 
ফোনঃ 01303296028

সর্বশেষ জানা যায়, ফেসবুক পোস্টের পর প্রায় শতাধিক মধ্যবিত্ত পরিবার যোগাযোগ করে দূর্বার তারুণ্য ও মুহাম্মদ আবু আবিদের সাথে।  সেখান থেকে বাছাই করে ৭৫ টা মধ্যবিত্ত পরিবারকে নিত্যপ্রয়োজনীয় সকল সুযোগ সুবিধা,  খাদ্য,  চিকিৎসা ইত্যাদির ব্যয়ভার বহন করবে দূর্বার তারুণ্য। এ ধরনের কার্যক্রম সমাজে স্থিতি বয়ে আনবে বলে ধারণা বিশ্লেষকদের।

শেয়ার করুন
পূর্ববর্তী পোষ্ট
পরবর্তী পোষ্ট