দুই বছরের দাম্পত্য কলহের অবসান স্বামীর ঘরে লাকি আক্তার

সেলিম চৌধুরী,  স্টাফ  রিপোর্টারঃ- চট্টগ্রামে পটিয়ায়  নারী জাগরণ সংস্থার মধ্যস্থতায় স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে চলমান দুই বছরের বিরোধের নিস্পত্তি হয়েছে। গতকাল এ সংক্রান্তে এক সমঝোতা বৈঠকে এ বিরোধের অবসান ঘটায় লাকী আকতার সকল মান অভিমান ভূলে স্বামীর গৃহে ফিরে নতুন করে সংসার জীবন শুরু করেছে। সুএে জানাযায়, বিগত ৫ বছর পূর্বে পূর্ব হুলাইন গ্রামের মাহমুদুর রহমানের পুত্র মো: খোরশেদ আলমের সাথে পটিয়া উপজেলার ডেংগাপাড়া গ্রামের মৃত আবদুল মান্নানের কন্যা লাকী আকতারের ইসলামী শরিয়ত মোতাবেক বিবাহ হয়। বিয়ের এক বছর পরে তাদের ঐরসে এক পুত্র সন্তানের জন্ম হয়। কিন্তু স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে বিয়ের তিন বছর পর দাম্পত্য কলহ শুরু হয়। এতে স্ত্রী তার স্বামীর বাড়ী থেকে বাপের বাড়ীতে বসবাস করতে শুরু করে। পরে এলাকার গন্যমান্য ব্যাক্তিদের পরামর্শে লাকী আকতারের পক্ষ থেকে নারী জাগরণ সংস্থায় এ বিষয়ে অভিযোগ দেওয়া হয়। এতে গতকাল এ নিয়ে সংস্থার সভানেত্রী ফারহানা আকতার ও সাধারণ সম্পাদক রিংকি দেব ও আইনজীবী সেলিনা আকতার সহ কাউন্সিলর গণ উভয় পক্ষের বক্তব্য শ্রবণ করেন। তারা এ দম্পতির দাম্পত্য জীবনের দূরত্ব সৃষ্টির কারণ চিহ্নিত করে তা সংশোধনের মাধ্যমে পূনরায় সংসার জীবন গঠন করার আহবান জানালে উভয় পক্ষ তা মেনে নিতে সম্মত হয়। এতে খাদের কিনারায় থাকা একটি সংসার ভেংগে যাওয়ার হাত থেকে রক্ষা পায়। এ সময় লাকী আকতার ও তার স্বামী খোরশেদ আলম বলেন, আমাদের মধ্যে সামান্য বিরোধের কারণে আমরা এতদিন আলাদা বসবাস করে আসছিলাম। কিন্তু আজ নারী জাগরণ সংস্থা আমাদের বক্তব্য শ্রবণ করে যে সমাধান দিয়েছে তাতে আমরা খুবই খুশি। আমরা এজন্য সংস্থার কাছে কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি। এবং আজ থেকে নতুন করে সংসার জীবন শুরু করতে যাচ্ছি। তারা তাদের সন্তান ও আগামীর উজ্জ্বল ভবিষ্যতের জন্য সকলের কাছে দোয়া চান।


শেয়ার করুন
পূর্ববর্তী পোষ্ট
পরবর্তী পোষ্ট