অটোচালক বাদশা হত্যার দুই আসামি আটক

অটোচালক বাদশা হত্যার দুই আসামি আটক

মোঃ আকাশ সরকার, কুড়িগ্রাম প্রতিনিধিঃ কু‌ড়িগ্রা‌মে উ‌লিপু‌রে অ‌টো‌রিকশা চালক‌ বাদশা মিয়া হত‌্যাকান্ডের সাথে জড়িত দুই জনকে গ্রেপ্তার করেছে উলিপুর থানা পুলিশ। 

গত ১ সেপ্টেম্বর, ভোরে অভিযান চালিয়ে  উপজেলার বুড়াবুড়ি ইউনিয়নের সাদী গ্রাম থেকে জাহাঙ্গীর আলম (৪৫) ও সবুজ মিয়া (২১) নামক দুইজনকে আটক করা হয়েছে। এ অভিযানে বাদশা মিয়ার ব্যবহৃত অটো রিকশার বিভিন্ন যন্ত্রাংশ উদ্ধার করা হয়। বৃহস্পতিবার, আটক কৃতদের কুড়িগ্রাম আদালত এর  মাধ্যম ৪ দিনের রিমান্ড নেয়া হয়। 

আটক জাহাঙ্গীর আলম বুড়াবুড়ি ইউনিয়নর সাদী গ্রামের আজগার ব্যাপারীর পুত্র এবং সবুজ মিয়া পার্শ্ববর্তী সাদ্দির গ্রামের আব্দুল হামিদর পূত্র।

গত ২৮ সেপ্টেম্বর, কু‌ড়িগ্রাম সদর উপ‌জেলার মোগলবাসা ইউনিয়নের ডাকুয়া পাড়া গ্রা‌মের ওসমান আলীর পুত্র বাদশা মিয়ার (৫০)লাশ উলিপুর উপজেলার দূর্গাপুর ইউ‌নিয়‌নের যমুনা মাশানকুড়া এলাকার একটি ধান ক্ষেত থেকে উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় বাদশা মিয়ার ভাই মানিক মিয়া বাদি হয়ে অজ্ঞাতনামা ব্যক্তিদের  আসামী করে মামলা দায়ের করেন।

উলিপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মোয়াজ্জেম হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন। পরে তাদের দেয়া তথ্য  মোতাবেক জাহাঙ্গীরের বাড়ি ও পুকুর থেকে অটারিকশার বিভিন্ন যত্রাংশ উদ্ধার করা হয়।

নবীনগরে মাদ্রাসার অধ্যক্ষ ও সভাপতির বিরুদ্ধে নিয়োগ বানিজ্য এবং প্রশ্ন ফাঁসের অভিযোগ

 নবীনগরে মাদ্রাসার অধ্যক্ষ ও সভাপতির বিরুদ্ধে নিয়োগ বানিজ্য এবং প্রশ্ন ফাঁসের অভিযোগ


এস.এম অলিউল্লাহ 

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধিঃ

ব্রাহ্মণবাড়িয়া নবীনগর উপজেলা বাহ্মণহাতা নারুই বার আউলিয়া ইসলামিয়া আলিম মাদ্রাসায় দৈনিক নয়াদিগন্ত পত্রিকার বিজ্ঞপ্তি মোতাবেক গত ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০ইং তারিখে বিভিন্ন পদে (৫) পাঁচজন জনবল নিয়োগের লিখিত পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। 


নিয়োগ পরীক্ষার ফলাফল ঘোষণার আগেই একজন প্রার্থী নিজেকে প্রথম স্থান ঘোষণা করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শোকরিয়া আদায় করলে নিয়োগ পরীক্ষা নিয়ে জনমনে প্রশ্ন সৃষ্টি হয়। সরেজমিনে অনুসন্ধানে বেড়িয়ে আসে বার আওলিয়া ইসলামিয়া আলিম মাদ্রাসার প্রিন্সিপাল ও গভর্নিং বডির সভাপতির বিরুদ্ধে পরীক্ষায় প্রশ্ন ফাঁস সহ অর্থ লেনদেনের অভিযোগ। 


নিয়োগ পরীক্ষায় বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগে প্রতিষ্ঠানের প্রিন্সিপাল মোঃ শাফীকুল ইসলাম ও গভর্নিং বডির সভাপতি কাইতলা উত্তর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আসলাম মৃধার বিরুদ্ধে ১ অক্টোবর নবীনগর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসারের বরাবর লিখিত অভিযোগ করেন নিয়োগ পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারী জহিরুল ইসলাম নামের একজন প্রার্থী। 


জহিরুল ইসলাম অভিযোগ করে বলেন আমাদের সাথে পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারী মোঃ ইমন চৌধুরী পরীক্ষার ফলাফল ঘোষণার আগেই নিজেকে প্রথম স্থান ঘোষণা করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শোকরিয়া আদায় করে পোস্ট দেওয়ার সাথে সাথে প্রশ্ন ফাঁস হয়েছে বলে এলাকা জুড়ে গুঞ্জন শুরু হয়। জহিরুল বলেন প্রতিষ্ঠানের প্রিন্সিপাল নিজে আমাকে চাকরি দিবে বলে আমার কাছ থেকে ১ লক্ষ টাকা ঘুষ নেই।   


কাইতলা উত্তর ইউনিয়ন মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার নিয়ামত উল্লাহ অভিযোগ করে বলেন আমার মেয়েকে চাকরি দিবে বলে প্রিন্সিপাল ও গভর্নিং বডির সভাপতি আমার কাছে ৩ লক্ষ টাকা ঘুষ চাই। এছাড়াও নিয়োগ পরীক্ষায় অনিয়ম ও দুর্নীতি  হয়েছে বলে অভিযোগ করেন নিয়োগ পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারী ইমরান ও বিজয়। 


গভর্নিং বডির সভাপতি আসলাম মৃধা তার বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন আমরা স্বচ্ছতার মাধ্যমে সুন্দর ভাবে পরীক্ষা নিয়েছি। আমার বিরুদ্ধে অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা। 


প্রতিষ্ঠানের প্রিন্সিপাল শাফীকুল ইসলামের কাছে তার বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন আমার বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা ও বানোয়াট। আমরা নিরপেক্ষ ভাবে নিয়োগ পরীক্ষা সম্পূর্ণ করেছি। কেউ অতিরিক্ত বলে থাকলে সেটা তার ব্যাপার।


বার আউলিয়া ইসলামিয়া আলিম মাদ্রাসা নিয়োগ বানিজ্য ও প্রশ্ন ফাঁসের অভিযোগ সম্পর্কে জানতে চাইলে নবীনগর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মোঃ মোকাররম হোসেন বলেন আমি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। সত্যতা পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

উল্লেখ এখনো পর্যন্ত নিয়োগ পরীক্ষার ফলাফল ঘোষণা করা হয়নি।

মোংলায় কবি-গীতিকার জেমস শরৎ কর্মকারের জন্মদিন পালন

মোংলায় কবি-গীতিকার জেমস শরৎ কর্মকারের জন্মদিন পালন

মোংলা (বাগেরহাট) প্রতিনিধিঃমোংলার সাংস্কৃতিক আন্দোলনের বাতিঘর সেন্ট পল্স উচ্চ বিদ্যালয়ের অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক কলতান শিল্পী গোষ্ঠির পরিচালক কবি-গীতিকার জেম্স শরৎ কর্মকারের ৭৫তম জন্মদিন উপলক্ষে ১ অক্টোবর বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট মোংলার আয়োজনে জোটের অস্থায়ী কার্যালয়ে কেককাটা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৭টায় কেককাটা অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট মোংলার আহ্বায়ক সাংবাদিক মোঃ নূর আলম শেখ। কেককাটা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন মোংলা সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ মোঃ গোলাম সরোয়ার। অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন সংবর্ধিত অতিথি কবি-গীতিকার জেম্স শরৎ কর্মকার, বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের উৎপল মন্ডল, সুশাসনের জন্য নাগরিক সুজন’র ভারপ্রাপ্ত সভাপতি অধ্যাপক শেখ নজরুল ইসলাম, প্রভাষক মাহবুবুর রহমান, প্রভাষক কবি মনোজ কান্তি বিশ্বাস, প্রভাষক সাহারা বেগম, অন্তর বাজাও শিল্পী গোষ্ঠির মোঃ নাজমুল হক, সুন্দরবন থিয়েটারের পরিচালক স্বদেশ বন্ধু দাস, শিল্পী প্রদীপ মন্ডল, উপজেলা কিশোর ফোরামের সভাপতি মোঃ রিয়াজ শেখ প্রমূখ। কেককাটা অনুষ্ঠানে বক্তারা কবি-গীতিকার জেম্স শরৎ কর্মকারের সাংস্কৃতিক অঙ্গনে অবদানকে কৃতজ্ঞ চিত্তে স্মরণ করেন। সবশেষে কেক কাটার মাধ্যমে জেম্স শরৎ কর্মকারের ৭৫তম জন্মদিন পালন করা হয়। 

শম্ভুগঞ্জে পানি নিষ্কাশনে কাজ করলো ইসলামী আন্দোলনের কর্মীবৃন্দ

 শম্ভুগঞ্জে পানি নিষ্কাশনে কাজ করলো ইসলামী আন্দোলনের কর্মীবৃন্দ




আশিকুজ্জামান মিজান,ময়মনসিংহঃ  শম্ভুগঞ্জে পানি নিষ্কাশনে কাজ করলো ইসলামী আন্দোলনের কর্মীবৃন্দ ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ সব সময় দেশ এবং জনগনের সেবায় নিয়োজিত। বিভিন্ন সময় তারা বিভিন্ন সেবামূলক কাজ করে থাকে। তেমনি ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশন এর ৩৩ নং ওয়ার্ডের শম্ভুগঞ্জ চামড়া বাজার ও গরু হাট বাজারে প্রায় তিন মাসের বেশি সময় যাবত বৃষ্টির পানি জমে থাকায় তা নিরসনে এগিয়ে আসে ৩৩ নং ওয়ার্ডের ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর কর্মীবৃন্দ। সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় টানা বৃষ্টিতে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি প্রায় তিন মাসের বেশি সময় ধরে। এখানে কোন ড্রেন বা অন্যকোন ব্যবস্থা  না থাকার কারণে এ জলাবদ্ধতার সৃষ্টি। এর কারণে এখানে বসা চামড়া বাজার ও গরু হাট বসতে পারছে না যার দরুন ব্যবসায়ীদের অনেক সমস্যা হচ্ছে। বিশেষ করে আশেপাশে মানুষের চলাচলে অসুবিধা হচ্ছে আর আশে পাশের বাড়ি তে পানি ঢুকে পড়েছে। স্থানীয় লোকজন জানায় পানি নিষ্কাশন একটি ড্রেনের খুব প্রয়োজন তা না হলে পানি সরিয়ে নেওয়া সম্ভব নয়।  আবার বৃষ্টি হলে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হবে। এ জলাবদ্ধতা নিষ্কাশনের জন্য ইসলামী আন্দোলন  বাংলাদেশ এর কর্মীরা এগিয়ে এসেছে। তা পুরোপুরি পানি সরিয়ে নিতে না পারলেও চলাচলের একটা ব্যবস্থা করবে। তাতে অনেকটা উপকৃত হবে। এদিকে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের কর্মীবৃন্দ জানায় আমরা আমাদের যথাসাধ্য চেষ্টা করছি। এজন্য দেখা যাক কতটুকু সরানো যায় পানি। আমরা দীর্ঘ সময় ধরে কাজ করছি। তারা এও জানায় এলাকার লোকজন এর দাবির এখানে একটি পরিকল্পিত ড্রেনের প্রয়োজন।  তাহলে জলাবদ্ধতার পানি পুরোপুরি সরিয়ে নেওয়া যাবে।  

তারা আরো জানায় আমাদের এ কাজে সহযোগিতা করছে আমাদের ৩৩নং ওয়ার্ডের ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ এর সকল কর্মীবৃন্দ।

নাগুরায় হবিগঞ্জ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের দাবীতে মানববন্ধন

নাগুরায় হবিগঞ্জ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের দাবীতে মানববন্ধন




লিটন পাঠান, হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধিঃহবিগঞ্জ জেলার বানিয়াচং উপজেলায় প্রস্তাবিত কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের জন্য মানববন্ধন অনুষ্টিত হয়েছে বানিয়াচং উপজেলার পুকড়া ইউনিয়নের এলাকাবাসীর ব্যানারে বানিয়াচং উপজেলার নাগুড়া নামক স্থানে আঞ্চলিক বাংলাদেশ ধান গবেষনা ইনষ্টিটিউটের সামনের হবিগঞ্জ-নবীগঞ্জ সড়কে মানববন্ধনটি অনুষ্টিত হয় (১-অক্টোবর) বৃহস্পতিবার সকালে অনুষ্টিত মানববন্ধনে উপজেলার সকল শ্রেনী পেশার মানুষজন উপস্থিত থেকে নাগরিক সমাজের দাবীকে সমর্থন জানিয়েছেন।


বানিয়াচং উপজেলার ৯নং পুকড়া ইউনিয়নের নাগুড়া নামক স্থানে বাংলাদেশ ধান গবেষনা ইনষ্টিটিউট অবস্থিত যাকে সংক্ষেপে নাগুড়া ফার্ম নামে অভিহিত করা হয় নাগুড়া ফার্মের নিজস্ব কৃষি ও অকৃষি জমি‘র সাথে সরকারী খাস জমিকে একত্রিত করে অতি দ্রুত  সময়ের মধ্যে প্রস্তাবিত কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় চালু করা সম্ভব । এবং জমি অধিগ্রহনসহ আনুষাঙ্গিক কার্যক্রম দ্রুত সময়ে সমাধান করার মাধ্যমে বাস্তবায়নের যৌক্তিক দাবিতে মানববন্ধনে বক্তারা বক্তব্য রাখেন।


২০১৪ সালের ২৯ নভেম্বর হবিগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের জনসভায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা‘র উপস্থিতিতে বানিয়াচং উপজেলার নাগুড়া গ্রামে অবস্থিত আঞ্চলিক বাংলাদেশ ধান গবেষনা ইনষ্টিটিউটকে কেন্দ্র করে কৃষি বিশবিদ্যালয় স্থাপনের দাবী জানানো হয়েছিলো বিদ্যমান আইনে হবিগঞ্জ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় নামে যে আইনটি পাশ করা হয়েছে এতে হবিগঞ্জ জেলা সদরকে নির্দিষ্ট করে দেওয়ার কারনে বানিয়াচংবাসীর দাবী বাস্তবায়ন না হওয়ার আশংকা দেখা দিয়েছে।


জানা যায় দেশে নতুন করে আরেকটি কৃষি বিশ্ব বিদ্যালয় স্থাপনের জন্য সরকার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন সপ্তম এ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থাপনের জন্য সংসদে একটি আইন পাশ করা হয়েছে।

এ লক্ষ্যে গত ২৩জুন তারিখে কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় আইন জাতীয় সংসদে উখাপন করা হয় গত ১০ সেপ্টেম্বর তারিখে কৃষি বিশ্ব‌বিদ্যালয় বিলটি সংসদে পাশ করা হয়।

আত্রাইয়ে বিদ্যুতস্পৃষ্ট হয়ে ইশরাত জহানের মৃত্যু মৃত্যু

আত্রাইয়ে বিদ্যুতস্পৃষ্ট হয়ে ইশরাত জহানের মৃত্যু   মৃত্যু

মোঃ ফিরোজ হোসাইন 

রাজশাহী ব্যুরো


 নওগাঁর আত্রাইয়ে নানার বাড়ি বেড়াতে এসে বিদ্যুত স্পৃষ্ট হয়ে মারা গেছে ইশরাত জাহান ইপ্তি(৩) । নিহত ইপ্তি বাঁকা গ্রামের ইদ্রিস আলী মৃধার মেয়ে । সকাল সাড়ে ১১টার সময় এঘটনা ঘটে।

পরিবার সূত্রে জানা যায়, গত কয়েক দিন আগে ইপ্তি ও তার মা নানির বাড়ি বেড়াতে এসেছে। ঘটনার সময় ইপ্তি ঘরের মধ্যে খেলা করছিল হঠাৎ বিদ্যুত ব্যবহৃত মাল্টিপ্লাগের ভেতর হাত দিলে সঙ্গে সঙ্গে বিদ্যুত তাড়িত হলে গোংরানির শব্দ পেয়ে মা মেনসুইচ অপ করে ইপ্তিকে উদ্ধার করে। পরে লওদুলী বাজারে স্থানীয় ডাক্তারে কাছে নিয়ে এলে ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করে।

এ ব্যাপারে আত্রাই থানা অফিসার ইনচার্জ মোঃ মোসলেম উদ্দিন সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন বিষয় অত্যন্ত দুঃখ জনক।

শেখ হা‌সিনা দে‌শে না ফির‌লে অন্ধকার গহ্ব‌রে ত‌লিয়ে যেত জা‌তি-রেজাউল ক‌রিম চৌধুরী

শেখ হা‌সিনা দে‌শে না ফির‌লে অন্ধকার গহ্ব‌রে ত‌লিয়ে যেত জা‌তি-রেজাউল ক‌রিম চৌধুরী


রিয়াজুল করিম রিজভী,চট্টগ্রাম ব্যুরো প্রধানঃমোহরা বঙ্গবন্ধু প‌রিষ‌দ আ‌য়ো‌জিত আ‌লোচনা সভায় প্রধান অ‌তি‌থির বক্ত‌ব্যে চট্টগ্রাম সি‌টি ক‌র্পো‌রেশন নির্বাচ‌নে আওয়ামী লীগ ম‌নোনীত নৌকা প্র‌তি‌কের মেয়র প্রার্থী বীর মু‌ক্তি‌যোদ্ধা, লেখক ও গ‌বেষক আলহাজ্ব মো. রেজাউল ক‌রিম চৌধুরী ব‌লেন, শেখ হা‌সিনা দে‌শে না ফির‌লে অন্ধকার গহ্ব‌রে ত‌লিয়ে যেত জা‌তি।৭৫ এ জা‌তির জনক হত্যাকা‌ন্ডের মাধ্য‌মে গহীন আঁধা‌রে গুম‌রে কেঁ‌দে মরা বাংলার মানুষ ম‌নের গোচ‌রে কিংবা অ‌গোচ‌রে তাঁকেই খুঁ‌জে‌ছে। যি‌নি শত বাঁধা ও আঘাত বু‌কে নি‌য়ে খুনী স্বৈরাচা‌রের দুঃশাসন থে‌কে দেশ‌কে রক্ষা কর‌তে, দে‌শের মানু‌ষের ভোট ও ভা‌তের অ‌ধিকার প্র‌তিষ্ঠা তথা ভা‌গ্যের প‌রিবর্তন ঘটা‌তে অ‌বিচল হ‌বেন। যি‌নি দে‌শের মানু‌ষের সু‌খে হাঁস‌বেন, মানু‌ষের দুঃ‌খে কাঁদ‌বেন ও পরম মমতায় আঘাত ঘু‌চি‌য়ে দে‌বেন। যি‌নি জঙ্গী, সন্ত্রাসী ও দুর্নী‌তিবাজ‌দের উৎখাত কর‌তে রুদ্র রো‌ষে গ‌র্জে উঠ‌বেন। যি‌নি বিশ্ব দরবা‌রে দেশ‌কে তু‌লে ধর‌বেন মর্যাদার আস‌নে। দেশ‌কে নি‌য়ে যা‌বেন উন্নয়‌নের চরম শিখ‌রে। আজ তি‌নি জনগ‌ণের সমস্ত আকাঙ্খা পূরণ ক‌রে এ‌গি‌য়ে চ‌লে‌ছেন অদম্য গ‌তি নি‌য়ে। 


আঁততায়ীর বু‌লেট, বোমা ২১ বার তাঁর প্রাণ হর‌ণের জন্য এ‌কেবা‌রে গা‌য়ের উপর এ‌সেও ব্যর্থ হয়ে‌ছে। এ শুধু জগ‌তের প্র‌তিপালক মহান সৃ‌ষ্টিকর্তা ও মানু‌ষের ভালবাসা তাঁর সা‌থে আ‌ছে ব‌লেই। নাহ‌লে, ৭৫ এ প‌রিবা‌রের সা‌থে য‌দি আমরা এ মহান নেত্রী‌কে হারাতাম তবে এ‌দেশ কোন অরাজকতায় ডু‌বে যেত তা আমরা সা‌র্বিয়া, হা‌র্জিয়া গো‌বি‌নিয়া, আফগা‌নিস্তান‌কে দে‌খে অনুমান কর‌তে পা‌রি। আর ভাব‌তে গি‌য়ে শিহ‌রি উ‌ঠি। আজ তি‌নি আ‌ছেন, দেশ প‌রিচালনার ভার তাঁর হা‌তে। তাই, পরম করুণাময় আল্লাহত আয়ালার দরবা‌রে শুক‌রিয়া জানাই এবং তাঁর সুস্বাস্থ্যময় দীর্ঘ জীবন কামনা ক‌রি।


৫নং মোহরা ওয়ার্ড কাউ‌ন্সিল মিলনায়ত‌নে অনু‌ষ্ঠিত সভায় বিশেষ অতিথি বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামীলীগের সাংস্কৃতিক সম্পাদক হাজী আবু তাহের,মোহরা ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত আহবায়ক মোঃনাজিম উদ্দিন চৌধুরী,মোহরা ৫নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের যুগ্ন-আহবায়ক মোঃ জসিম উদ্দিন,আহবায়ক কমিটির সদস্য মোঃসলোইমান চৌধুরী,ফয়সাল চৌধুরী,আবুল কালাম,মেজবাহ উদ্দিন লিটন,ইলিয়াচ ইলু,শামসুল আলম,ওমর খৈয়াম তৈয়ব,সিরাজুল ইসলাম,আবুল হাসেম,শফিকুর রহমান সৌরভ,আবদুল হান্নান সুমন,ফারজানা আক্তার,বিপ্লব দে লালু,মোঃ জাহেদ,ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ নেতা-রফিক এলাহী,আইয়ুব আলী দুলাল,নুর হোসেন,মোঃ নাছির উদ্দীন,হারুন তালুকদার,আমিনুল ইসলাম,এস এম মন্জু,নঈম খান,মোজাম্মেল হোসেন,সন্তোষ দাশ,ওয়ার্ড মহিলালীগ নেত্রী দিলুয়ারা বেগম,ওয়ার্ড স্বেচ্ছাসেবকলীগ সভাপতি মোঃ নিজাম উদ্দিন,সহ-সভাপতি মোঃ জাহেদ,মহানগর সাস্কৃতিক জোটের অর্থ সম্পাদক মামুনুর রশিদ মামুন,নগর সেচ্ছাসেবকলীগ নেতা-নুরুজ্জামান রিপন,আশরাফুল আলম শিবলু,কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক উপ-পাঠাগার সম্পাদক মোঃ ইলিয়াচ উদ্দিন, সমাজসেবক মোঃ ইব্রাহীম হোসেন, ওয়ার্ড যুবলীগ নেতা-মোঃ মোরশেদ,জাহাঙ্গীর হোসেন,ওয়াহিদুজ্জামান রাজিব,মোঃ রাসেল,মোঃ মহিউদ্দিন,রাজিব মহাজন,মোঃ শফি,মাসুদ রানা,ইয়াছিন,পারভেজ,ওয়ার্ড সেচ্ছাসেবকলীগ নেতা আমীর হোসেন খোকন,মোঃ মনির,বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক স্কোয়াড চট্টগ্রাম মহানগরের সভাপতি রাখাল শর্মা,সাধারণ সম্পাদক মিহির দেওয়ানজি,সহ-সভাপতি মোঃ ইমরান,সহ-সভাপতি সৃজন পাল,অর্থ সম্পাদক সুকুমার দে,শ্রমিকলীগ নেতা-মোঃ শাজাহান,মোঃ আলাউদ্দিন,মোঃমহিউদ্দিন, চান্দঁগাও থানা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি রায়হান উদ্দিন সায়েম,ওমর গনি এম ই এস কলেজ ছাত্রলীগ নেতা-হায়দার আলী সাদ্দাম,সোহেল তালুকদার,মোঃ জিয়া,থানা ছাত্রলীগ নেতা রেজাউল রিজু,অনুপ আচার্য্য,মোঃ তারেক,১৮ নং ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এ কে বিদুৎ,ওয়ার্ড ছাত্রলীগ নেতা-মোঃ সোহাগ,মোঃ নোমান,শিপন পাল,মোঃ নয়ন,জয় দাশ,সাইফুল ইসলাম,মোঃ মহিউদ্দিন,মোঃ সিহাব,আরিফ,একরামুল,সাগর,নাহিয়ান,সজিব,ইমরান,ইশান প্রমূখ ।


সভায় সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের আহবায়ক নুরুল আব্বাস,সঞ্চালনা করেন সংগঠনের সদস্য সচিব-এস এম হাবিব।


শেখ হা‌সিনার নি‌রোগ দীর্ঘায়ু কামনা ক‌রে দোয়া ও মোনাজাত পরিচালনা করেন কালুরঘাট তৈয়বীয়া জামে মসজিদের খতিব মাওলানা মোঃ মোরশেদুল আলম কাদেরী। 


সর্বশেষে তৈয়বীয়া মাদ্রাসা শিক্ষার্থীদের মাঝে রান্না করা খাবার বিতরন করা হয়।

মন্ত্রণালয়ের নিয়োগ স্থগিতাদেশ প্রত্যাহার না হওয়া পর্যন্ত শিক্ষা কার্যক্রম স্থগিতের ঘোষণা শিক্ষক সমিতির

 মন্ত্রণালয়ের নিয়োগ স্থগিতাদেশ প্রত্যাহার না হওয়া পর্যন্ত  শিক্ষা কার্যক্রম স্থগিতের ঘোষণা শিক্ষক সমিতির




নোবিপ্রবি প্রতিনিধিঃনোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের(নোবিপ্রবি) সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ড. এম অহিদুজ্জামানের মেয়াদে শিক্ষক-কর্মকর্তা নিয়োগে অনিয়ম দুর্নীতির অভিযোগ ওঠলে গেল বছরের এপ্রিলে বিশ্ববিদ্যালয়টির সব ধরণের নিয়োগ  কার্যক্রম স্থগিত করে দেয় শিক্ষা মন্ত্রণালয়। কিন্তু দেড় বছরের বেশি সময় পেরিয়ে গেলেও নিয়োগ স্থগিতাদেশ প্রত্যাহার করেনি মন্ত্রণালয়।  নিয়োগ  স্থগিতাদেশের কারণে বিশ্ববিদ্যালয়টির সব ধরণের নিয়োগ কার্যক্রম স্থগিত রয়েছে। শিক্ষা মন্ত্রণালয় কর্তৃক আরোপিত সেই নিয়োগ স্থগিতাদেশ প্রত্যাহার না হওয়া পর্যন্ত শিক্ষা কার্যক্রম স্থগিতের ঘোষণা দিয়েছে শিক্ষক সমিতি।


বৃহস্পতিবার(১ অক্টোবর) নোবিপ্রবি শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. নেওয়াজ মোহাম্মদ বাহাদুর ও সাধারণ সম্পাদক মজনুর রহমান স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে শিক্ষা কার্যক্রম স্থগিত রাখার বিষয়টি জানানো হয়।


বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, মহামান্য রাষ্ট্রপতি ও মাননীয় চ্যান্সেলর এর প্রতি আন্তরিক ধন্যবাদ জ্ঞাপন করছি অত্র বিশ্ববিদ্যালয়ে একজন সুযোগ্য উপাচার্য নিয়োগ দেওয়ায়, যাঁর নেতৃত্বে বিশ্ববিদ্যালয় এগিয়ে যাচ্ছে। মাননীয় উপাচার্য মহোদয় দায়িত্বগ্রহণের পরে শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারী ও শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন সমস্যা সমাধানে এবং শিক্ষা ও গবেষণার সুষ্ঠু পরিবেশ নিশ্চিতকরণের জন্য নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। করোনাকালীন জাতীয় দুর্যোগের মধ্যেও তাঁর আন্তরিক চেষ্টায় নোবিপ্রবির জানুয়ারি-জুন সেমিস্টারের শিক্ষা কার্যক্রম অনলাইনে সমাপ্ত হয়ে পরবর্তী সেমিস্টারের শিক্ষা কার্যক্রম শুরু হয়েছে। পাশাপাশি তাঁর উদ্যোগে নির্দিষ্ট সময়ের মাঝে শিক্ষকদের প্রচেষ্টায় সকল বিভাগের সকল বর্ষের ফলাফল প্রকাশ করা হয় যা দুর্যোগকালীন শিক্ষা ব্যবস্থাপনার এক অনন্য উদাহরণ। স্বল্প সময়ের মধ্যে ল্যাব স্থাপন ও করোনা পরীক্ষার অনুমোদনের জন্য তিনি ব্যবস্থা গ্রহণ করেন যার ফলে নোবিপ্রবি অন্য চারটি বিশ্ববিদ্যালয়ের সাথে করোনা শনাক্তকরণের জন্য প্রশংসনীয় ভূমিকা পালনে সক্ষম হয়েছে। কিন্তু মাননীয় উপাচার্য মহোদয়কে নিয়োগের পূর্বে অত্র বিশ্ববিদ্যালয়ের নিয়োগ সংক্রান্ত যে নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছে তা এখনো বলবৎ রয়েছে। বিভিন্ন পত্রপত্রিকার মাধ্যমে আমরা জানতে পেরেছিলাম এর জন্য একটি তদন্ত কমিটি গঠিত হয়েছে, যার ফলাফল আমরা আজও দেখতে পাইনি। প্রাথমিক অবস্থায় উপাচার্য মহোদয় মারফত আমরা জানতে পেরেছিলাম তদন্ত কমিটির রিপোর্ট পাওয়া সাপেক্ষে এই নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করা হবে। কিন্তু প্রায় ১ বছর ৫ মাস অতিক্রান্ত হওয়ার পরও নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করা হয়নি। ফলশ্রুতিতে শিক্ষকরা বিভিন্ন বৈষম্যের সম্মুখীন হচ্ছেন। অত্র বিশ্ববিদ্যালয়ের ৬০ জন শিক্ষক অস্থায়ী পদে নিয়োগপ্রাপ্ত রয়েছেন। ইতোমধ্যে অনেক শিক্ষকের পরবর্তী পদে পদোন্নতির সময়ও প্রায় ১ বছর অতিক্রান্ত হয়েছে, তাদের পরে স্থায়ী পদে নিযুক্ত শিক্ষকগণও পদোন্নতি পেয়ে যাওয়ায় শিক্ষকদের মাঝে একধরণের বৈষম্য দেখা যাচ্ছে। এছাড়াও অনেকগুলো বিভাগেই পর্যাপ্ত শিক্ষক নেই, মাত্র ২ জন শিক্ষক দিয়ে ২টি শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থীদের পাঠদান কার্যক্রম চলছে। ফলে মানসম্মত শিক্ষা দেওয়া সম্ভব হচ্ছে না এবং শিক্ষার্থীরা ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে। নতুন নিয়োগ বন্ধ থাকায় বিভাগ পরিচালনায় পর্যাপ্ত শিক্ষক নেই বলে অনেক বিভাগের শিক্ষকরা উচ্চশিক্ষার জন্য শিক্ষাছুটিতে যেতে পারছেন না। এতে করে শিক্ষকদের মাঝে উচ্চশিক্ষাজনিত একধরণের অনিশ্চয়তা পরিলক্ষিত হচ্ছে।


বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, আমরা শিক্ষক সমিতি সর্বশেষ গত ২০ সেপ্টেম্বর মানববন্ধন করে ৩০ সেপ্টেম্বরের মাঝে এই সমস্যার সমাধান করার জন্য বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে সময়সীমা বেঁধে দিই। মাননীয় উপাচার্য মহোদয় শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাননীয় মন্ত্রী ও শিক্ষা সচিবের সাথে আলোচনা করে আমাদের বারবার আশ্বাস দিলেও আমাদের প্রদত্ত সময়ের মাঝে আমরা কোনো ফলাফল পাইনি। ফলে আমরা শিক্ষক সমিতি অস্থায়ী শিক্ষকদের দাবির প্রেক্ষিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল প্রকার শিক্ষা কার্যক্রম অনির্দিষ্টকালের জন্য স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছি। শিক্ষক সমিতি আশা করে শিক্ষা মন্ত্রণালয় দ্রুত এই নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করে শিক্ষা কার্যক্রম পুনরায় চালু করার বিষয়ে সহায়তা করবে।

ঝিনাইদহের শৈলকুপায় সাপের কাঁমড়ে এক স্কুল ছাত্রের মৃত্যু হয়েছে

 ঝিনাইদহের শৈলকুপায় সাপের কাঁমড়ে এক স্কুল ছাত্রের  মৃত্যু হয়েছে


সম্রাট হোসেন, শৈলকুপা (ঝিনাইদহ)প্রতিনিধিঃবৃহস্পতিবার (১লা অক্টোবর) দুপুরে পৌর এলাকার শ্যামপুর গ্রামে এঘটনা ঘটে। নিহত শিক্ষার্থী ওই গ্রামের হাসমত মন্ডলের ছেলে ও উপজেলার সারুটিয়া ইউনিয়নের শাহবাড়িয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৫ম শ্রেণীর শিক্ষার্থী।


পারিবারিক সুত্রে জানা যায়, রাতে ভাইবোনের সাথে পাশের রুমে ঘুমিয়ে ছিল শিক্ষার্থী ইলিয়াস। বুধবার দিবাগত রাত ৪টার দিকে সাপের কাঁমড়ে চিৎকার করে ওঠে। পরে তাকে উদ্ধার করে স্থানীয় দুই ওঝা ও এক হুজুরের নিকট নিয়ে গেলে পরদিন দুপুর ১২টার দিকে তার মৃত্যু হয়। এ নিয়ে গত দুই মাসে উপজেলায় ১৩ জনের মৃত্যু হলো।

যশোরে বোমা ফাটিয়ে ও ছুরিকাঘাত করে ১৭ লাখ টাকা ছিনতাই ঘটনায় ৫ জন আটক

 যশোরে বোমা ফাটিয়ে ও ছুরিকাঘাত করে ১৭ লাখ টাকা ছিনতাই ঘটনায় ৫ জন আটক



সুমন হোসেন, যশোর জেলা প্রতিনিধিঃযশোর শহরের জেসটাওয়ারের সামনে থেকে বোমা ফাটিয়ে ও ছুরিকাঘাত করে ১৭ লাখ টাকা ছিনতাই ঘটনার সাথে জড়িত পাঁচজনকে আটক করেছে পুলিশ। একই সাথে ছিনতাই হওয়া ২ লাখ ৪৮ হাজার ৫শ টাকা উদ্ধারও হয়েছে । আটককৃতরা হলো, শহরের পুলিশ লাইন টালিখোলা এলাকার শফি দারোগার বাড়ির ভাড়াটিয়া টিপু, বারান্দি মোল্লা পাড়ার রবিউল ইসলামের ছেলে সাইদ ইসলাম, ধর্মতলা হ্যাচারি পাড়ার রুহুল আমিনের ছেলে বিল্লাল হোসেন, সিটি কলেজ পাড়ার নিজাম উদ্দিনের ছেলে রায়হার এবং পুর্ববারান্দিপাড়ার মৃত মুফতি আলি হোসেনের ছেলে ইমদাদুল হক।আটককৃতদের কাছথেকে ২টি চাকু, একটি ব্যাগ ও মোটরসাইকেল জব্দ করা হয়েছে। আজ ভোর পর্যন্ত শহর ও শহরতলীর বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে অভিযুক্তদের আটক ও ছিনতাই করা এ টাকা উদ্ধার করা হয়। আজ দুপুরে যশোরের পুলি শ সুপারের কার্যালয়ে আয়োজিত এক ব্রিফিংয়ে এ কথা জানান পুলিশ সুপার আশরাফ হোসেন। তিনি বলেন, যারা এই ছিনতাই কাজে জড়িত তারা সবাই চিহ্নিত অপরাধী। তাদের প্রত্যেকের নামে থানায় বিভিন্ন মামলা রয়েছে।  ঘটনার পর ঘটনাস্থলের সিসি টিভির ফুটেজ এবং প্রযুক্তির ব্যবহার করে আসামীদের শনাক্ত করা হয়। এরপর পুলিশের বিভিন্ন ইউনিটের সমন্বয়ে অভিযান চালিয়ে শহরের ধর্মতলা, বসুন্দিয়া, আলাদিপুর, বারান্দিপাড়া, সিটি কলেজ পাড়া ও পুলিশ লাইন টালিখেলা এলাকায় একাধিক অভিযান চালিয়ে জড়িতদের আটক করা হয়।

উদ্ধারকৃত মালামাল


২লাখ ৪৮ হাজার ৫শ টাকা এবং ছিনতাইকাজে ব্যবহৃত ২ চাকু, একটি ব্যাগস ও মোটর সাইকেল জব্দ করা হয়। পুলিশ সুপার জানান, আটককৃতরা শহরের মণিহার এলাকায় চলাফেরা করে। ঐ এলাকাতেই মোটরপার্টস ও ফলের ব্যবসা করেন এনামুল হক। তাদের কাছ থেকেই ১৯ সেপ্টেম্বর প্রকাশ্য দিবালোকে এরা টাকা ছিনতাই করে। জড়িত অন্যদেরকেও আটক করার চেষ্টা করা হচ্ছে বলে জানান তিনি।

আশাশুনির শ্রীউলায় ভ্রাম্যমাণ আদালতে জরিমানা

আশাশুনির শ্রীউলায় ভ্রাম্যমাণ আদালতে জরিমানা

 

আহসান উল্লাহ বাবলু আশাশুনি সাতক্ষীরা প্রতিনিধি :আশাশুনি উপজেলার ইউনিয়ন ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনাকালে এক ব্যবসায়ীকে জরিমানা করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার বিকালে উপজেলার শ্রীউলা ইউনিয়নের নাকতাড়া বাজারে চাউলের দোকানে পাটের বস্তা ব্যবহার না করে প্লাস্টিকের বস্তায় চাউল সংরক্ষণ করায় পণ্যে পাটজাত মোড়কের বাধ্যতামূলক ব্যবহার আইন, ২০১০ এর আওতায় একজন দোকানদারকে পাঁচশত টাকা জরিমানা করা হয়| ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও বিজ্ঞ নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মীর আলিফ রেজা।

আশাশুনিতে ভ্রাম্যমাণ আদালতে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ

আশাশুনিতে ভ্রাম্যমাণ আদালতে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ


আহসান উল্লাহ বাবলু আশাশুনি সাতক্ষীরা  প্রতিনিধি:আশাশুনি সদর ইউনিয়নের দয়ারঘাট চাপড়া ব্রিজ টু মানিকখালি ব্রিজ বাইপাস সড়কের দুইপাশে অবৈধভাবে গড়ে ওঠা স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকালে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শাহিন সুলতানা ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনাকালে এ অবৈধভাবে গড়ে তোলা ৭টি দোকান ঘর উচ্ছেদ করেন। বাইপাস সড়কের দুই পাশে দীর্ঘদিন ধরে অবৈধ স্থাপনা গড়ে ওঠার মহোৎসব চলছিল। প্রশাসনের হস্তক্ষেপে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ হওয়ায় এলাকার সুশীল সমাজ প্রশাসনকে সাধুবাদ জানিয়ে সন্তোষ প্রকাশ করেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন ভূমি অফিসের কর্মকর্তা ও পুলিশ সদস্য বৃন্দ।

মাদককারবার ও ভূমি দখলের প্রতিবাদ করায় মোংলায় এক যুবককে পিটিয়ে রক্তাক্ত জখম

মাদককারবার ও ভূমি দখলের প্রতিবাদ করায় মোংলায় এক যুবককে পিটিয়ে রক্তাক্ত জখম


মোংলা (বাগেরহাট) প্রতিনিধিঃ ভূমিদস্যু ও মাদককারবারীদের বিরুদ্ধে প্রশাসনের বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ দেয়ায় মোংলার সুন্দরবন ইউনিয়নের এক যুবককে পিটিয়ে রক্তাক্ত জখম করেছে স্থানীয় চিহ্নিত মাদককারবারী চক্রের সদস্যরা। এ ঘটনায় থানা অভিযোগও দায়ের হয়েছে। অভিযোগ ও আহত ব্যক্তি এবং স্থানীয়দের মাধ্যমে জানা যায়, মোংলা উপজেলার সুন্দরবন ইউনিয়নে দিগরাজ এলাকায় বিভিন্ন ব্যক্তির ভূমি জোরপূর্বক দখল করে নিয়েছে একই এলাকার ইসলাম শিকারী গং। তাদের বিরুদ্ধে রয়েছে মাদক কারবারের অভিযোগও। তাদের নিকট আত্মীয় মোংলার মাদক সম্রাট মুকুল শিকারীকে কয়েকদিন আগে আটক করেছে পুলিশ। স্থানীয়দের অভিযোগ এখনো চলছে শিকারী গংদের মাদক বেচাকেনার কারবার। 


মোংলার সুন্দরবন ইউনিয়নের দিগরাজ এলাকার বাসিন্ধা মোঃ সফিকুল ইসলাম জানান, মোংলার সুন্দরবন ইউনিয়নে দীর্ঘদিন ধওে মাদক বেচাকেনার সাথে জড়ির মান্নান শিকারী, মাহফুজ শিকারী, মারুফ শিকারী, মহসিন শিকারী ও মাহবুব শিকারী। আর তাদের মাদক পরিবহণের কাজ করে থাকেন মিজান সরদার। শিকারী গংদের দীর্ঘদিনের মাদক বেচাকেনার কারণে এলাকার যুব সমাজ ধবংসের পথে চলে যাচ্ছে। আর ওই যুব সমাজকে রক্ষায় ওই মাদককারবরীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে র‍্যাব-০৬ এর খুলনা কাযার্লয়ে সম্প্রতি একটি লিখিত অভিযোগ দেন তিনি। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে বুধবার তাকে সংঘবদ্ধ ওই ভূমিদস্যু ও মাদককারবারী চক্রের সদস্যরা বেদম মারপিট করে রক্তাক্ত অবস্থান রাস্তায় ফেলে রেখে চলে যায়। পরে এলাকাবাসী তাকে উদ্ধার করে মোংলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। এ ঘটনায় তিনি থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দাখিল করেছেন।


একই এলাকার বাসিন্দা কপিল মজুমদার (৫৫) বলেন, এক বছর আগে তাদের মালিকানা ২ একর ২৩ শতক ভূমি জোর পূর্বক দখল করে নেয় ইসলাম শিকারীর ছেলে মারুফ শিকারী। স্থানীয় আরেক বাসিন্দা মাহমুদ শেখ (৫০) জানান, একটি জাল দলিল তৈরী করে ইসলাম শিকারী পাচ বছর আগে তাদের ৬১ শতক ভূমি দখল করে নিয়েছেন। আর পাশ্ববর্তী বাসিন্দা ইমান আলী খন্দকার (৭৪) জানান, তাদের খরিদ সূত্রে মালিকানা  ৮৯ শতক ভূমি জাল দলিল করে জোরপূর্বক দখল নিতে তাদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানী করছে শিকারী গং। স্থানীয় এসব বাসিন্দারা জানান, শিকারী গংরা প্রতিনিয়ত সুন্দরবন ইউনিয়নের বিভিন্ন মানুষকে হয়রানী করে তাদের সম্পদ লুটে নিচ্ছেন। একই সাথে তারা মাদককারবার চালিয়ে যাচ্ছেন প্রশাসনের চোখ ফঁাকি দিয়ে। তাদের ওইসব অপকর্ম বন্ধের জন্য তারা দুই শতাধিক এলাকাবাসী স্বাক্ষর করে প্রশাসনের বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ দিয়েছেন। ইতিমধ্যে তাদের একজন মুকুল শিকারীকে মাদকসহ আটক করেছে থানা পুলিশ।


এ বিষয়ে সুন্দরবন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ কবির হোসেন বলেন, স্থানীয় বাসিন্দা কপিল মজুমদার ও গোড়া মাইজেসহ আরো অনেকের সম্পত্তি শিকারী গংরা জোরপূর্বক জবর দখল করে নেয়ার অভিযোগ তার কাছে এসেছে। একই সাথে মাদকের সাথে জড়িত থাকার অভিযোগও তাদেও বিরুদ্ধে অনেকেই করেছেন। বিষয়টিতে প্রশাসনের দৃষ্টি দেয়ার আহবাণ জানান তিনি। 


মোংলা থানার অফিসার ইনচার্জ মো: ইকবাল বাহার চৌধুরী বলেন, অভিযোগ পাওয়া পর বিষয়টির তদন্তের দায়িত্ব এসআই অমিতকে দেয়া হয়েছে। তদন্তে সতত্যা পাওয়া গেলে অবশ্যই এ ঘটনায় মামলা নেয়া হবে। #

দেবহাটা প্রেসক্লাবের নির্বাচিত সম্পাদক শাওনকে সাংবাদিক আজহারুল ইসলাম সাদী'র শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জ্ঞাপন

 দেবহাটা প্রেসক্লাবের নির্বাচিত  সম্পাদক শাওনকে সাংবাদিক আজহারুল ইসলাম সাদী'র শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জ্ঞাপন

 



আহসান উল্লাহ বাবলু আশাশুনি সাতক্ষীরা প্রতিনিধি ও স্টাফ রিপোর্টার : উৎসব মূখর পরিবেশের মধ্য দিয়ে, সাতক্ষীরা জেলার দেবহাটা উপজেলা প্রেসক্লাবের, বার্ষিক নির্বাচন সম্পন্ন হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১ অক্টোবর) সকাল ১০ টা থেকে ১২টা পর্যন্ত ভোট গ্রহন অনুষ্ঠিত হয়। 


নির্বাচনে সাধারণ সম্পাদক পদে ২ জন প্রতিদ্বন্দ্বীতা করে, এর মধ্যে,  দৈনিক কালের চিত্রের বিশেষ প্রতিনিধি মাহামুদুল হাসান শাওন ২০ ভোটের মধ্যে, ১৬ ভোট পেয়ে দেবহাটা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছেন, তার প্রতিদ্বন্দ্বী দৈনিক ভোরের কাগজের রিয়াজুল ইসলাম পেয়েছেন ৪ ভোট। 

এছাড়া কার্যনির্বাহী সদস্য পদে ৩ জন প্রতিদ্বন্দ্বীতা করে,  দৈনিক সুপ্রভাতের এম,এ মামুন ১৫, দৈনিক দক্ষিণের মশালের এস,এম নাসির উদ্দীন ১৫, এবং দৈনিক খুলনা অঞ্চলের কে,এম রেজাউল করিম ৯টি ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন।


দেবহাটা প্রেসক্লাবের নির্বাচনে, রিটার্নিং অফিসারের দায়িত্ব পালন করেন, সরকারি খানবাহাদুর আহছান উল্লা কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ আনিছুর রহমান। প্রধান নির্বাচন কমিশনার হিসেবে ছিলেন, দেবহাটা সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবু বকর গাজী এবং সহকারী রিটার্নিং অফিসারের দায়িত্ব পালন করেন প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল ওহাব।

নির্বাচনে দৈনিক কালের চিত্র পত্রিকার বিশেষ প্রতিনিধি মাহমুদুল হাসান শাওন সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হওয়ায় দৈনিক মাতৃজগত পত্রিকার স্টাফ রিপোর্টার আজহারুল ইসলাম সাদী শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জ্ঞাপন করেছেন,  সেই সাথে সদ্য নির্বাচিত দেবহাটা প্রেসক্লাবের সকল কার্যনির্বাহী সদস্য কে ও শুভেচ্ছা অাভিনন্দন জানিয়েছেন।


নওগাঁর রাণীনগর উপজেলা পর্যায়ে জাতীয় ইমাম সম্মেলন ও ইমাম বাছায় ২০২০

 নওগাঁর রাণীনগর উপজেলা পর্যায়ে  জাতীয় ইমাম সম্মেলন ও ইমাম বাছায় ২০২০


মোঃ ফিরোজ হোসাইন,রাজশাহী ব্যুরোঃনওগাঁর রাণীনগরে  উপজেলা পর্যায়ে প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত ইমাম দের কে  নিয়ে ইসলামিক ফাউণ্ডেশন রাণীনগর  নওগাঁর আয়োজনে, মোঃ গোলাম মোস্তফা উপপরিচালক ইসলামিক ফাউণ্ডেশন এর সভাপতিত্বে  জাতীয় ইমাম সম্মেলন ও ইমাম বাছায় করা হয়৷ 

   

 আজ ১/১০/২০২০ ইং বৃহস্পতিবার  সকাল ১০ ঘটিকায় রাণীনগর  উপজেলা নির্বাহী অফিসারের সভা কক্ষে উপজেলার ৮ টি ইউনিয়নের মধ্যে থেকে মোট ৩০ জন ইমাম কে নিয়ে সকাল ১১ ঘটিকায়  ২০১৯/২০২০  ইমাম বাছাই ও সম্মেলন  অনুষ্ঠিত হয়। 


উক্ত ইমাম বাছাই  অনুষ্ঠানে, প্রধান অতিথি হিসেবে ছিলেন রাণীনগর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ আল মামুন ৷ 


আরো উপস্থিত ছিলেন 

রাণীনগর উপজেলার ফিল্ড সুপারভাইজার মোহসম্মাদ মুসা,  নওগাঁ সদর উপজেলার 

মডেল কেয়ার টেকার মোঃ গোলাম রাব্বানী, রাণীনগর  মডেল কেয়ার টেকার মোঃ মহাসিন আলী ও রাণীনগর উপজেলার জি সি গোন৷  অবশেষে দোয়ার মাধ্যমে সমাপ্ত করা হয় ৷

আত্রাইয়ে বন্যার চরম অবনতি সরকারীভাবে ত্রান বিতরণ

 আত্রাইয়ে বন্যার চরম অবনতি সরকারীভাবে ত্রান বিতরণ


মোঃ ফিরোজ হোসাইন রাজশাহী ব্যুরোঃনওগাঁর আত্রাইয়ে বন্যার চরম অবনতি ঘটেছে। বৃহস্পতিবার সকাল নয়টায় আত্রাই নদীর পানি বীপদসীমার ৬৮ সেন্টিমিটার উপরদিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। বুধবার বিকেলে বন্যার্তদের মাঝে উপজেলা প্রশাসন কর্তৃক খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে। কয়েক দিনের প্রবল বর্ষণ এবং উপর হতে নেমে আসা পানি পূর্বের ভাঙ্গন দিয়ে হুহু করে গ্রামাঞ্চলে প্রবেশ করায় উপজেলার লোকজন চরম বিপদের মধ্যে রয়েছে। এর মধ্যে নিম্নাঞ্চল সহ নদী সংলগ্ন ১৫০ টি গ্রাম ডুবে গেছে।এতে প্রায় দু’লক্ষ মানুষ তাদের যাবতীয় জিনিসপত্র নিয়ে পানিবন্দী হয়ে পড়েছে। ঐসকল গ্রামের মানুষ তাদের জীবন বাঁচাতে বিভিন্ন স্কুলে,উঁচু রাস্তায় এবং ঘড়ের খাট বা চকিতে থেকে জীবিকা নির্বাহ করছেন। প্রাথমিক অবস্থায় নৌকাযোগে উপজেলার চারটি ইউনিয়নের ১০ টি গ্রামের এক হাজার বানভাসি মানুষের মাঝে চাল ডাল তেল লবণ মুড়ি চিরা চিনি নুডুলস বিতরণ করেছেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. ছানাউল ইসলাম। এসময় স্কাউট সদস্য এবং আত্রাই প্রেসক্লাবের সাংবাদিকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. ছানাউল ইসলাম সাংবাদিকদের জানান, বন্যায় ১৫০ টি গ্রামের লক্ষাধিক মানুষ পানিবন্দী হয়েছে। উপজেলাজুড়ে খামারি ও মৎস ব্যবসায়ীদের ব্যাপক ক্ষতি এবং প্রায় আরাই হাজার হেক্টর ফসলি জমি ডুবে গেছে। জীবন বাঁচাতে ঘড়-বাড়ী ছেড়ে বন্যাদুর্গত মানুষ বিভিন্ন স্কুল এবং উঁচু রাস্তায় গিয়ে উঠেছেন। যাদের বাড়ীছেরে কোথাও যাবার উপায় নাই সে সকল পরিবার ঘড়ের খাটে বা চকিতে অবস্থান করছেন। উপজেলা প্রশাসনের পক্ষে শুকনো খাবার দেওয়া হচ্ছে।

পটিয়ার বড়লিয়া ইউপি নির্বাচনে মহাজোটের প্রার্থী হওয়ার আগ্রহী জাপার নেতা বদিউল আলম

পটিয়ার বড়লিয়া ইউপি নির্বাচনে মহাজোটের প্রার্থী হওয়ার আগ্রহী জাপার নেতা বদিউল আলম


সেলিম চৌধুরী, স্টাফ রিপোর্টারঃচট্টগ্রামের পটিয়ার বড়লিয়া আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে মহাজোটের মনোনয়নে চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করতে আগ্রহী জাতীয় পার্টি চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা কমিটির অন্যতম সদস্য প্রবাসী বদিউল আলম। তিনি জাতীয় পার্টি প্রতিষ্টাতা লগ্ন থেকে আজ পর্যন্ত দেশে এবং বিদেশে জাতীয় পার্টিকে সুসংগঠিত করার জন্য ব্যাপক ভুমিকা পালন করছেন। সে জাতীয় পার্টি কেন্দ্রীয় কমিটির ভাইস চেয়ারম্যান ও চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলার সভাপতি সাবেক পটিয়া পৌরসভার মেয়র  মুক্তিযোদ্ধা  শামসুল আলম মাষ্টারের ঘনিষ্ঠ সহচর হিসেবে বড়লিয়া ইউনিয়ন তথা পটিয়া ও দক্ষিণ চট্টগ্রামে পরিচিত। ২০০৮ সালে জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিদেশ থেকে এসে মহাজোটের প্রার্থী আলহাজ্ব শামসুল হক চৌধুরীর জন্য বড়লিয়া ইউনিয়নে প্রতিটি পাড়ায় মহল্লায় গ্রামের ভোট প্রার্থনা করে শামসুল হক চৌধুরীকে বিজয়ী করার জন্য ভুমিকা পালন করছেন বলে দৈনিক ইনফো বাংলা প্রতিনিধি সাথে একান্ত সাক্ষাৎ করে বিষয়টি নিশ্চিত করেন। এছাড়াও ২০১৪ সালে জাতীয় পার্টি সাথে আওয়ামীলীগের মহাজোটগত নির্বাচনে তিনি পুর্নরায় ভোট প্রার্থনা করেন আলহাজ্ব শামসুল হক চৌধুরী এমপির জন্য। এর ধারাবাহিকতা ২০১৮ সালে জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামীলীগের প্রার্থী আলহাজ্ব শামসুল হক চৌধুরীকে বিজয়ী করতে মাঠে ময়দানে কাজ করেছেন। বর্তমানে আলহাজ্ব শামসুল হক চৌধুরী জাতীয় সংসদের মাননীয় হুইপ। দক্ষিণ জেলা জাতীয়  পার্টির নেতা  বদিউল আলম প্রবাসী দীর্ঘদিন জাতীয় পার্টির রাজনীতিতে সে অনেক মামলা- হামলা নির্য়াতনের শিকার হয়েছেন বিএনপি- জামায়াত জোট সরকার আমলে। দেশের রাজনীতিতে প্রতিহিংসা কারণে বিদেশে গেলেও সেখানে জাতীয় পার্টি এরশাদের সৈনিক হিসেবে জাতীয় পার্টিকে শক্তিশালি করার জন্য কাজ করেছেন। গত তিনটি জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আলহাজ্ব শামসুল হক চৌধুরী জন্য ভোট প্রার্থনা করে বিজয়ী করায় জাতীয় সংসদের মাননীয় হুইপ আলহাজ্ব শামসুল হক চৌধুরী তাকে খুব স্নেহ করেন বলে বদিউল আলম জানান। এছাড়াও ১৯৯১ সালে এরশাদ মুক্তি আন্দোলনে রাজপথে আন্দোলন সংগ্রামে ব্যাপক ভুমিকা রাখেম তিনি  তার সাথে তার এলাকার ইউপি সদস্য চট্টগ্রাম দক্ষিণ জাতীয় যুবসংহতির সাধারণ সম্পাদক দুলা মিয়া চৌধুরীসহ আরোও অনেকে ছিলেন। তিনি স্বরণ করেন বড়লিয়া ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ও উপজেলা জাতীয় পার্টি সাবেক সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা মরহুম  ইলিয়াস চেয়ারম্যানকে তার হাত ধরে জাতীয় পার্টি পতাকাতলে সামিল হন বদিউল আলম। মুক্তিযোদ্ধা মরহুম ইলিয়াস চেয়ারম্যান ও সাবেক পৌর মেয়র শামসুল আলম মাষ্টার মধ্যে ছিল ঘনিষ্ঠ বন্ধু।  বদিউল আলম প্রবাসী অত্যন্ত আশাবাদী মাননীয় হুইপ পটিয়ার এমপি আলহাজ্ব শামসুল হক চৌধুরী তাকে সঠিক মুল্যায়ন করবে এবং আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন বড়লিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান পদে নির্বাচনে মহাজোটের প্রার্থী করার তিনি  আশাবাদী। বদিউল আলম প্রবাসী একজন   জনপ্রিয় ব্যাক্তি গরীব, অসহায়, দুঃখী, দিন মজুর, মেহনতী মানুষের পরম বন্ধু। তিনি এলাকায়  বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের  দায়িত্ব পালন করে আসছেন। এলাকার লোকজনের সাথে কথা বলে জানাগেছে তিনি একজন ভদ্রলোক হিসাবে পরিচিত।  তিনি নির্বাচন করে বিজয়ী হলে সাধারণ মানুষের সেবা নিশ্চিত করতে বদ্ধ পরিকর প্রতিবেদকের সাথে আলাপকালে জানান। বদিউল  একজন সদালাপী সাদা মনের মানুষ। তার সাথে জাতীয় সংসদের হুইপ ও পটিয়ার এমপি আলহাজ্ব শামসুল হক চৌধুরীর সাথে রয়েছে গভীর  সম্পর্ক। ফলে আগামী বড়লিয়া ইউনিয়ন পরিষদের আসন্ন  নির্বাচনে    চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করে বিজয়ী হলে এলাকার ব্যাপক উন্নয়ন ত্বরান্বিত করতে পারবেন।  চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা জাতীয় পার্টি সদস্য বদিউল আলম প্রবাসীদলের নেতা কর্মী সমর্থক ছাড়াও বড়লিয়া ইউনিয়ন সর্বস্তরের জনগণের   দোয়া ও  সহযোগিতা কামনা করেন। তিনি  করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ মোকাবেলায় এলাকায় নিরবে মানুষকে বিভিন্নভাবে সাহায্য সহযোগিতা করেছেন বলে জানাগেছে।  বদিউল আলম প্রবাসী   পটিয়ার উন্নয়নের দারা অব্যহত রাখতে সর্ববস্তরে  জনগণের প্রতি আহবান জানান।     

মুজিব বর্ষ উপলক্ষে মিরসরাইয়ে গ্রামীন সড়কে মাস ব্যাপী মোবাইল রক্ষণাবেক্ষণ কাজ শুরু

মুজিব বর্ষ উপলক্ষে মিরসরাইয়ে গ্রামীন সড়কে মাস ব্যাপী মোবাইল রক্ষণাবেক্ষণ কাজ শুরু



মিরসরাই প্রতিনিধিঃমুজিব বর্ষের অঙ্গীকার, সড়ক হবে সংস্কার’ প্রতিপাদ্য নিয়ে মিরসরাইয়ে গ্রামীণ সড়কে মোবাইল রক্ষণাবেক্ষণ কাজের উদ্বোধন করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (১ অক্টোবর) উপজেলার মিঠাছড়া-বামনসুন্দর সড়কের সংস্কার কাজের উদ্বোধন করেন এলজিইডির চট্টগ্রাম অঞ্চলের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী তোফাজ্জল আহমেদ। এসময় এলজিইডির নির্বাহী প্রকৌশলী ওয়াহিদুজ্জামান, উপজেলা প্রকৌশলী কামরুজ্জামান, উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি জাহাঙ্গীর কবির চৌধুরী, এলজিইডির সিনিয়র সহকারি প্রকৌশলী প্রতিপদ দেওয়ান, উপ সহকারি প্রকৌশলী, মিজানুল রহমান, আমিনুল ইসলাম, উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক এম সাইফুল্লাহ দিদার প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।


চট্টগ্রাম এলজিইডির নির্বাহী প্রকৌশলী ওয়াহিদুজ্জামান জানান, মুজিব বর্ষ উপলক্ষে এলজিইডি চলতি বছর অক্টোবর মাসকে গ্রামীন সড়ক রক্ষণাবেক্ষন সেবা মাস ঘোষণা করেছে। এলজিইডির তত্ত্বাবধানে প্রাথমিক ভাবে চট্টগ্রামের মিরসরাই ও পটিয়া উপজেলা গ্রামীন পাকা সড়কে মোবাইল রক্ষণাবেক্ষন কার্যক্রম শুরু করেেেছ। 


এলজিইডি চট্টগ্রাম অঞ্চলের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী তোফাজ্জল আহমেদ জানান, মোবাইল রক্ষণাবেক্ষণের মাধ্যমে উপজেলা প্রধান প্রধান সড়ক গুলোতে সৃষ্টি হওয়া ছোট বড় গর্ত গুলো সংস্কার করে সড়কে চলাচলের মান বজায় রাখা হবে। এতে সড়কটি সহজে নষ্ট হবে না। স্থানীয় জনসাধারণের চলাচলের সুবিধাসহ বিভিন্ন সুবিধার কথা চিন্তা করে সরকার এ কার্যক্রম হাতে নিয়েছে। সেবা মাস উপলক্ষে মোবাইল রক্ষণাবেক্ষণ কার্যক্রমের মাধ্যমে চট্টগ্রামে দেড়’শ কিলোমিটার সড়কে সংস্কার কাজ করা হবে।


নাগরপুরে বজ্রপাতে মিনহাজ নামে স্কুল ছাত্রের মৃত্যু

নাগরপুরে বজ্রপাতে মিনহাজ নামে স্কুল ছাত্রের মৃত্যু


হাসান সাদী,নাগরপুর প্রতিনিধি:টাঙ্গাইলের নাগরপুরে নদীতে গোসল করতে গিয়ে মো. মিনহাজ (১২) নামের এক স্কুল ছাত্র বজ্রপাতে মারা গেছে। বৃহস্পতিবার (১ অক্টোবর) সকালে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত ওই স্কুল ছাত্র উপজেলার মামুদনগর ইউনিয়নের শুনসী গ্রামের জুলমত আলীর ছেলে।


স্থানীয় ইউপি সদস্য আবুল হাসেম  জানান, সকালে নদীতে গোসল করতে গেলে এ সময় প্রচণ্ড বজ্রপাতে হয়। বজ্রপাতের স্বীকার হয়ে তার মৃত্যু হয়েছে। সে শুনসী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৫ম শ্রেণীর ছাত্র।

আত্রাই উপজেলা পর্যায়ে জসতীয় ইমাম সম্মেলন

আত্রাই উপজেলা পর্যায়ে  জসতীয় ইমাম সম্মেলন

    


মোঃ ফিরোজ হোসাইন রাজশাহী ব্যুরোঃনওগাঁর আত্রাইয়ে উপজেলা পর্যায়ে প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত ইমাম দের কে  নিয়ে ইসলামিক ফাউণ্ডেশন আত্রাই নওগাঁর আয়োজনে, মোঃহযরত আলীর সভাপতিত্বে  জাতীয় ইমাম সম্মেলন ও ইমাম বাছায় করা হয়

   

বৃহস্পতিবার  সকাল ১০ ঘটিকায় আত্রাই উপজেলা অডিটোরিয়ামে আত্রাই উপজেলার ৮ টি ইউনিয়নের মধ্যে থেকে মোট ৫০ জন ইমাম কে নিয়ে দিন ব্যাপি  এ প্রশিক্ষণ কোর্স  ২০১৯/২০২০ অনুষ্ঠিত হয়।

উক্ত ইমাম  অনুষ্ঠানে, প্রধান অতিথি হিসেবে ছিলেন আত্রাই উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ ছানাউল ইসলাম এর প্রতিনিধি মোঃ হাবিবুর রহমান EorDo  আত্রাই 

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত 

ছিলেন মাসুদুর রহমান BrDc এর  চেয়ারম্যান


আরো উপস্থিত ছিলেন 

জাতীয় ইমাম সমিতির সভাপতি  মাওলানা মোহাম্মদ  আঃ সালাম,  সাবেক সভাপতি  মোঃ এমদাদুল হক, মাওঃ রফিকুল ইসলাম,জাতীয় ইমাম সমিতির  সাধারণ সম্পাদক হাফেজ মোঃ ফিরোজ হোসাইন, মোঃ আবদুল হাই মোঃ আল হাদি   

মোঃ আবুল হোসেন, আঃ রাজ্জাক, রেজাউল ইসলাম মাওঃ আঃ জলিল৷

খুলনা জেলা ডিবি পুলিশের বিশেষ অভিযানে গ্রেফতার - ৩

 খুলনা জেলা ডিবি পুলিশের বিশেষ অভিযানে গ্রেফতার - ৩

খোন্দকার আব্দুল্লাহ বাশার,খুলনা ব্যুরো প্রধানঃখুলনা জেলা ডিবি পুলিশের বিশেষ অভিযানে কয়রা থানা এলাকা হতে সর্বমোট ২,৯৬,০০০/- (দুই লক্ষ ছিয়ানব্বই হাজার) রুপি মূল্য মানের ভারতীয় জাল নোট, ০১ টি নীল রংয়ের রেজিষ্ট্রেশন বিহীন ১৬০ সিসি অ্যাপাচি আরটিআর মোটরসাইকেল, ০২টি সিমেন্টের বস্তার তৈরী বাজার করা ব্যাগ, ০১ টি ছোট শপিং ব্যাগ, ০৩ টুকরা কাপড়সহ ০৩ জন আসামি গ্রেফতার। 

 খুলনা জেলার সুযোগ্য পুলিশ সুপার জনাব, এস.এম শফিউল্লাহ (বিপিএম) মহোদয়ের নির্দেশনায় এসএম. রাজু আহমেদ, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার, ‘‘এ’’ সার্কেল এর সার্বক্ষণিক তত্বাবধানে জেলা গোয়েন্দা শাখা, খুলনার অফিসার ইনচার্জ সেখ কনি মিয়া এর নেতৃত্বে সঙ্গীয় ফোর্স সহ মাদকদ্রব্য উদ্ধার, চোরাচালান চক্র গ্রেফতার ও বিশেষ অভিযান পরিচালনাকালে কয়রা থানাধীন আমাদি বাজারে অবস্থানকালে ৩০/০৯/২০২০ খ্রিঃ তারিখ ১৫.৪৫ ঘটিকার সময় গোপনসূত্রে সংবাদের ভিত্তিতে জানিতে পারেন যে, কয়রা থানাধীন নারায়নপুর গ্রামস্থ জনৈক আসাফুর মোল্লা, পিতা- মৃত দিদার বক্স মোল্লার বাড়ীর সামনে পাঁকা রাস্তার উপর কয়েকজন লোক ভারতীয় জাল রুপি নিজেদের দখলে রেখে খাটি বলে আদান প্রদানের জন্য অবস্থান করতেছে। উক্ত সংবাদ উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে মোবাইল ফোনে অবহিত করে সংবাদের সত্যতা যাচাই ও আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনের লক্ষ্যে ৩০/০৯/২০২০ খ্রিঃ তারিখ ১৫.৫৫ ঘটিকার সময় উল্লেখিত স্থানে উপস্থিত হয়ে আসামি ১। সাইফুল ইসলাম (২২) পিতা- মোঃ আমিন উদ্দিন মোল্লা, মাতা- সাফিয়া বেগম, সাং- ফতেকাটি, থানা- কয়রা, জেলা- খুলনা, ২। মোঃ রমজান আলী (২৩) পিতা- রেজাউল করিম, মাতা- মোছাঃ রেবেকা খাতুন, ৩। মোঃ কাজল ইসলাম (৩৮) পিতা- হাবিবুর রহমান গাজী, মাতা- মোছাঃ জাহানারা বেগম, উভয় সাং- কুড়িকাহুনিয়া, থানা- আশাশুনী, জেলা- সাতক্ষীরাদেরকে ধৃত পূর্বক উপস্থিত সাক্ষীদের সম্মুখে আসামিদের দেহ তল্লাশীকালে তাদের হেফাজত হতে সিমেন্টের বস্তার তৈরি ব্যাগের মধ্যে টুকরা টুকরা কাপড় দ্বারা মোড়ানো ভারতীয় জাল রুপি সর্বমোট ২,৯৬,০০০/- (দুই লক্ষ ছিয়ানব্বই হাজার) ভারতীয় জাল রুপি এবং আসামিদের হেফাজত হতে ০১টি নীল রঙের রেজিষ্ট্রেশন বিহীন ১৬০ সিসি অ্যাপাচি আরটিআর মোটরসাইকেল পেয়ে ৩০/০৯/২০২০ খ্রিঃ তারিখ ১৬.৩৫ ঘটিকায় জব্দ তালিকা মুলে জব্দ করেন। গ্রেফতারকৃত আসামিরা দীর্ঘদিন যাবৎ সাতক্ষীরা জেলার ভোমরা বর্ডার এলাকা থেকে ভারতীয় জাল রুপি সংগ্রহ করে খুলনা জেলার বিভিন্ন থানা এলাকায় বাংলাদেশী টাকার বিনিময়ে সরবরাহ সহ আদান প্রদান করে। উল্লেখ্য যে, আসামিরা দীর্ঘদিন যাবৎ ভারতীয় জাল নোট হেফাজতে ও বাংলাদেশি টাকার বিনিময়ে খাটি বলে প্রতারণা করার জন্য এক বা একাধিক মামলা রয়েছে। এ সংক্রান্তে খুলনা জেলা গোয়েন্দা শাখা, খুলনার এসআই (নিঃ) মোঃ নাজমুল হক বাদী হয়ে কয়রা থানায় আসামিদের বিরুদ্ধে বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা দায়ের করেন।

আশাশুনিতে আইনশৃঙ্খলা নিয়ে উপজেলা চেয়ারম্যানের সাথে ওসি'র মতবিনিময়

 আশাশুনিতে আইনশৃঙ্খলা নিয়ে উপজেলা চেয়ারম্যানের সাথে ওসি'র মতবিনিময়

আহসান উল্লাহ বাবলু, আশাশুনি, সাতক্ষীরা  প্রতিনিধিঃআশাশুনি উপজেলার সার্বিক আইন-শৃঙ্খলা বিষয় নিয়ে উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এ বি এম মোস্তাকিমের সাথে মতবিনিময় করেন থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ গোলাম কবির। বৃহস্পতিবার দুপুরে থানা অফিসার ইনচার্জ এর কার্যালয়ে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। মতবিনিময় কালে এবিএম মোস্তাকিম বলেন, উপজেলার প্রতাপনগর, আনুলিয়া, খাজরা ও শ্রীউলা ইউনিয়নে নতুন করে স্বাধীনতাবিরোধী নাশকতা মামলার আসামি সন্ত্রাসী চাঁদাবাজ ও মাদকসেবীরা এক হয়ে এলাকায় অরাজকতা সৃষ্টি করে চলেছে এবং সরকারবিরোধী বিভিন্ন ষড়যন্ত্রে লিপ্ত।তিনি এদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানান। এসময় থানা অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ গোলাম কবির বলেন,স্বাধীনতাবিরোধী সন্ত্রাসী চাঁদাবাজ নাশকতা পরিকল্পনাকারী এবং মাদক ব্যবসায়ী যত বড় শক্তিশালী ও ক্ষমতাধর ব্যক্তি হোক না কেন তাকে আইনের আওতায় আনা হবে। আশাশুনি উপজেলার সার্বিক আইন-শৃঙ্খলা রক্ষার জন্য যা যা প্রয়োজন আমি তা করবো। এ ব্যাপারে তিনি সকলের সহযোগিতা কামনা করেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শম্ভুজিৎ মন্ডল, বুধহাটা ইউপি চেয়ারম্যান ইঞ্জিঃ আ ব ম মোসাদ্দেক, শ্রীউলা ইউপি চেয়ারম্যান আবু হেনা সাকিল, সদর ইউপি চেয়ারম্যান স ম সেলিম রেজা মিলন,শোভনালী ইউপি চেয়ারম্যান প্রভাষক মোনায়েম হোসেন, 


আনুলিয়া ইউপি চেয়ারম্যান আলমগীর আলম লিটন,প্রতাপনগর ইউপি চেয়ারম্যান শেখ জাকির হোসেন, কাদাকাটি ইউপি চেয়ারম্যান দীপঙ্কর কুমার সরকার দ্বীপ, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুস সামাদ বাচ্চু, দপ্তর সম্পাদক বড়দল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী জগদিস চন্দ্র সানা প্রমুখ।

সাতক্ষীরা জেলা পরিষদের পক্ষ হতে সদরের বালিথা ঈদগাহের উন্নয়নে ৫০ হাজার টাকার চেক হস্তান্তর

 সাতক্ষীরা জেলা পরিষদের পক্ষ হতে সদরের বালিথা ঈদগাহের উন্নয়নে ৫০ হাজার টাকার চেক হস্তান্তর

 



আজহারুল ইসলাম সাদী, স্টাফ রিপোর্টারঃসাতক্ষীরা জেলা পরিষদের পক্ষ হতে, জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান, সৈয়দ আমিনুর রহমান বাবু'র মাধ্যমে, সদরে, ফিংড়ী ইউনিয়নের বালিথা দক্ষিণপাড়া ঈদগাহ এরর উন্নয়নে ৫০হাজার টাকার চেক হস্তান্তর করা হয়, চেক গ্রহণকালে উপস্থিত ছিলেন,  ফিংড়ী ইউপি সদস্য মোঃ আফসার উদ্দিন, অধ্যাক্ষ রুহুল আমিন, জেলা ওলামা লীগের সহ-সভাপতি সাখাওয়াত হোসেন প্রমুখ।

সাতক্ষীরায় মসিজদের উন্নয়নে ৫০ হাজার টাকা অনুদান প্রদাণ

সাতক্ষীরায় মসিজদের উন্নয়নে  ৫০ হাজার টাকা অনুদান প্রদাণ


 আহসান উল্লাহ বাবলু,আশাশুনি  সাতক্ষীরা  প্রতিনিধিঃ সাতক্ষীরা সদর উপজেলার আলিপুর হাটখোলা জামে মসজিদের উন্নয়নে ৫০ হাজার টাকার অনুদানের চেক প্রদান করেছেন সাতক্ষীরা জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান সৈয়দ আমিনুর রহমান বাবু।  চেক প্রদানকালে সৈয়দ আমিনুর রহমান বাবু বলেন, মমতাময়ী নেত্রী মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে উন্নয়ন কাজ অব্যাহত রয়েছে। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান যে সোনার বাংলা গড়ার সপ্ন দেখেছিলেন সেই সপ্নের সোনার বাংলা গড়ার লক্ষ্যে অক্লান্ত পরিশ্রম করে চলেছেন প্রাণপ্রিয় নেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সাতক্ষীরায় আমার নির্বাচনী এলাকার উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছি। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে সোনার বাংলা গড়ার লক্ষ্য সকল উন্নয়নের কাজ অব্যাহত রেখেছি। এসময় উপস্থিত ছিলেন সাতক্ষীরা জেলা পরিষদের সদস্য মো. মহিতুর রহমান, মিসেস রোজিনা কান্টু, মসজিদের ইমাম প্রমুখ।

প্রেমিক রাজুকে জোরপূর্বক বিষ খাইয়ে দিয়ে হত্যা করেছে মেয়ের পরিবার

 প্রেমিক রাজুকে জোরপূর্বক বিষ খাইয়ে দিয়ে হত্যা করেছে  মেয়ের পরিবার



খোন্দকার আব্দুল্লাহ বাশার। 

খুলনা ব্যুরো প্রধান। 

কুষ্টিয়ায় প্রেমিকার বাবার কাছে ভালোবাসার পরিক্ষা দিতেই বিষপপান করে প্রেমিক রাজু আত্মহত্যা করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে। রাজুর স্বজনরা জানায়,কুষ্টিয়া সদর উপজেলার কাঞ্চনপুর ইউনিয়ন চরকাঞ্চনপুর গ্রামের মিন্টুর ছেলে রাজু(২০) প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে একই ইউনিয়ন বেলঘড়িয়া চরপাড়া গ্রামের বজলু মেয়ে সাথী(১৭) সাথে,দীর্ঘ দুই বছরের সম্পর্ক,হঠাৎ ২৫ -০৯-২০ইং রবিবার অনুমানিক দুপুর ১টার দিকে তার মুঠো ফোনে ফোন আসে তার প্রেমিকা অন্যত্র  কোথাও বিয়ের হয়ে যাচ্ছে, রাজু ছুটে যায় প্রেমিকা সাথীর বাড়ির সামনে,গিয়ে ডাকা ডাকি করলে, সাথীর বাবা বাড়ি থেকে বের হয়ে আসে এবং বাড়ির ভিতরে ডেকে নিয়ে জুতা দিয়ে মারপিট করে,মেয়ের বাবা দুলাভাই বোনসহ জোরপূর্বক রাজুর মুখে বিষ ঢেলে দেয়, এবং সেই স্হানে মাটিতে লুটিয়ে পরলে গেটের বাহিরে বের করে দেই প্রেমিকার পিতা বজলু,। এ ঘটনার পর স্থানিও লোকজন টের পেয়ে তার অাত্মীয় স্বজনদের খবর দিলে  তার বন্ধু অাত্বীয় মিলে কুষ্টিয়া ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে। সেখানে তার অবস্থার অবনতি হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য  রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থান্তর করে। সেখানে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জালড়ে(৫) দিন চিকিৎসাধীন অবস্থায় কালে ৩০-০৯-২০ইং সন্ধা ৬টার দিকে তার মৃত্যু হয়। তার মৃত্যুতে ফুঁসে উঠেছে এলাকার সর্বস্তরের জনগণ  এবং বজলুর দৃষ্ঠান্ত মুলক শাস্তির দাবি জানিয়েছে। এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত কুষ্টিয়া মডেল থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। এ বিষয়ে মেয়ের বাবার সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করলেও তাকে পাওয়া যায়নি। 

তবে এ বিষয় নিয়ে এলাকায় নানামুখী গুঞ্জন চলছে।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বরাবরে চট্টগ্রামের ভারপ্রাপ্ত ডি.সি’কে স্মারকলিপি

 মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বরাবরে চট্টগ্রামের ভারপ্রাপ্ত ডি.সি’কে স্মারকলিপি


রিয়াজুল করিম রিজভী,চট্টগ্রাম ব্যুরো প্রধানঃসন্দ্বীপের নদীভাঙনে লক্ষ লক্ষ উদ্বাস্তুর পুনর্বাসন ও 

ভাসানচরে রোহিঙ্গা শরণার্থী স্থানান্তর প্রক্রিয়া বাতিলের দাবী

সন্দ্বীপ নাগরিক সমাজের উদ্যোগে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বরাবরে চট্টগ্রামের ভারপ্রাপ্ত ডি.সি’কে সন্দ্বীপের নদীভাঙনে লক্ষ লক্ষ উদ্বাস্তুর পুনর্বাসন ও ভাসানচরে রোহিঙ্গা শরণার্থী স্থানান্তর প্রক্রিয়া বাতিলের দাবিতে আজ বৃহস্পতিবার (১ অক্টোবর) সকাল ১১ঘটিকায় স্মারকলিপি প্রদান করা হয়।

স্মারকলিপিতে বলা হয়- ১. সন্দ্বীপের সাবেক ন্যায়ামস্তি ইউনিয়ন/ইজ্জতপুর জেগে উঠার পর ঠেঙ্গারচর নামে পরিচিত পাওয়া বর্তমান ভাসানচরে সন্দ্বীপের লক্ষ লক্ষ উদ্বাস্তুর পুনর্বাসন চাই, ২. ভাসানচরে রোহিঙ্গা শরণার্থীদের স্থানান্তর প্রক্রিয়া অনতিবিলম্বে বাতিলের দাবি জানাই, ৩. সন্দ্বীপের সীমানাভুক্ত ভাসানচর (ঠেঙ্গারচর) ও স্বর্ণদ্বীপ (জাহাজ্জার চর)কে সম্পূর্ণভাবে সন্দ্বীপ উপজেলাধীনে ঘোষণাপূর্বক, তা বাস্তবায়নের জোর দাবি জানাই, ৪. ১৯১৩ থেকে ১৯১৬ সালে প্রস্তুতকৃত ১৯৫৪ সালে সংশোধিত সি.এস ম্যাপ/নকশা অনুযায়ী চট্টগ্রাম জেলার সন্দ্বীপ উপজেলার সীমানা নির্ধারণের দাবি জানাই। অর্থাৎ আন্তঃজেলা সীমানা নির্ধারণের দাবি জানাই।


করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হয়ে চট্টগ্রামের ডি.সি ছুটিতে থাকায় তাঁর পক্ষে স্মারকলিপি গ্রহণ করেন-স্থানীয় সরকার অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক ও চট্টগ্রামের ভারপ্রাপ্ত ডি.সি ইয়াছমিন পারভীন তিবরীজি।


স্মারকলিপি প্রদানকালে উপস্থিত ছিলেন- সন্দ্বীপ এসোসিয়েশন চট্টগ্রামের সাবেক সাধারণ সম্পাদক এস.এম. ইব্রাহিম, সন্দ্বীপ এডুকেশন সোসাইটি চট্টগ্রামের নির্বাহী সদস্য মো. রেজাউল করিম মহসিন, সন্দ্বীপ নাগরিক সমাজের প্রধান সমন্বয়ক অধ্যক্ষ মুকতাদের আজাদ খান, সমন্বয়ক এমদাদুল করিম সৈকত, ক্যাব চট্টগ্রামের ডি.পি.ও মো. জহুরুল ইসলাম, সমাজকর্মী ফরিদ উদ্দিন, দৈনিক সরেজমিন বার্তার স্টাফ রিপোর্টার রিয়াজুল করিম রিজভী প্রমুখ।

লাকসাম শিক্ষকদের ইনহাউজ প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়

 লাকসাম শিক্ষকদের ইনহাউজ প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়

মোঃ রবিউল হোসাইন সবুজ, লাকসাম, কুমিল্লা জেলা প্রতিনিধিঃকুমিল্লায় লাকসাম নবাব ফয়জুন্নেসা বদরুন্নেসা যুক্ত উচ্চ বিদ্যালয় আয়োজনে শিক্ষকদের ইনহাউজ প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে।রোজ বৃহস্পতিবার  (১ অক্টোবর) লাকসাম পৌরসভার ৬নং ওয়ার্ড  পশ্চিমগাঁও নবাব ফয়জুন্নেসা বদরুন্নেসা উচ্চ  বিদ্যালয়ে এ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়। 

উক্ত  বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠান প্রধান ও আইসিটি বিষয়ের শিক্ষকদের এই প্রশিক্ষণ দেয়া হয়।

 কুমিল্লা  শিক্ষা বোর্ডের অনলাইন প্রশ্নব্যাংকে প্রশ্নপত্র আপলোড করার বিষয়ে প্রশিক্ষণ দেয়া হয়। 


স্কুলের সভাপতি, লাকসাম পৌরসভার সম্মানিত ৬নং ওয়ার্ডের কমিশনার মোঃ আব্দুল আলিম দিদার  প্রশিক্ষণ পরিচালনা করেন।


অনুষ্ঠানে ২০ জন  প্রশিক্ষণার্থী ছাড়াও অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন লাকসাম নবাব ফয়জুন্নেসা বদরুন্নেসা উচ্চ বিদ্যালয় প্রধান শিক্ষক মোঃ হেলাল সহকারী শিক্ষক মোঃ আব্দুল আজিজ  প্রমুখ। 


প্রশিক্ষণে দেয়া হয়-ইনহাউস ট্রেনিং হল সেই সংস্থার দ্বারা অভ্যন্তরীণ উন্নত শিক্ষার সুযোগের জন্য একটি প্রশিক্ষণ প্রোগ্রাম। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ইনহাউজ ট্রেনিং বলতে একটি প্রতিষ্ঠানের অভ্যন্তরীণ ক্রিয়াকলাপ ও শিক্ষক-শিক্ষিকা,স্টাফদের দ্বারা পরিচালিত কার্যক্রমকে বুঝায়। এই প্রকার ট্রেনিং এ ট্রেনিং পরবর্তী ফলোআপ অথবা  শিক্ষক-শিক্ষিকা,স্টাফদের জ্ঞান, দক্ষতা ঝালাই বা বৃদ্ধি করা হয়। তবে ইন-হাউস ট্রেনিংএ স্থান,সময়, অর্থ, সংখ্যা, প্রশিক্ষক বিবেচনা করতে হয়।   নির্দিষ্ট এবং পরিমাপযোগ্য প্রশিক্ষণ উদ্দেশ্য সেট করে এবং ইন-হাউস প্রশিক্ষণ মূল্যায়ন ফর্ম ব্যবহার করে এই প্রশিক্ষণ সফল করা যেতে পারে। 


ইন-হাউস প্রশিক্ষণের কিছু সুবিধা হল:


1. ভ্রমণ, বাসস্থান, খাবার, এবং অন্যান্য বিবিধ খরচ সঞ্চয়।

2. প্রতিষ্ঠানের নির্দিষ্ট চাহিদা কাস্টমাইজেশন।

3. প্রশিক্ষণ পরে ফলো আপ জন্য সুযোগ। 


হাউস প্রশিক্ষণ প্রোগ্রাম ডিজাইন করতে কিছু পয়েন্ট বিবেচনা করতে হয়:


1: ইন হাউস ট্রেনিং প্রোগ্রামটি সফলভাবে ডিজাইন করার জন্য প্রথমে প্রশিক্ষণ প্রয়োজনের মূল্যায়ন ( Needs Assessment) করতে হবে।

2: একটি সফল ইন হাউস ট্রেনিং প্রোগ্রাম ডিজাইন করার জন্য  টুলকিট নির্ধারণ করতে হবে.

3: ইন হাউস প্রশিক্ষণ চালু করার আগে প্রশিক্ষণ কর্মসূচী যাচাই (Validate the Training) করতে হবে।

4: ইন হাউস প্রশিক্ষণ চালু করার আগে প্রশিক্ষকদের প্রশিক্ষণ থাকতে হবে।

কুমিল্লায় স্ত্রীর যৌতুকের মামলায় স্বামী গ্রেপ্তার

 কুমিল্লায় স্ত্রীর যৌতুকের মামলায় স্বামী গ্রেপ্তার




মোঃ রবিউল হোসাইন সবুজ, কুমিল্লা জেলা প্রতিনিধিঃ-


দেবিদ্বার উপজেলা দক্ষিণ গুনাইঘর  ইউনিয়নের মাশিকাড়া গ্রামের মৃত আবুল কাশেমের ছেলে আশেকি এলাহী তার বিরুদ্ধে গোসারহাট থানায় ২০১৮ সালে তার প্রথম স্ত্রী তার বিরুদ্ধে নির্যাতন ও যৌতুকের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ  তার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি ছিল। 

 

আশিক এলাহী তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন  অপকর্ম  আধ্যাত্মিক লোক পরিচয় দিয়ে মানুষকে বিভ্রান্ত করে আসছে।

 এরই মধ্যে তার বিরুদ্ধে শরীয়তপুর জেলায় গোঘাট থানায় তার প্রথম স্ত্রী শাহানাজ আক্তার তার বিরুদ্ধে মামলা করে।

 এই মামলার প্রেক্ষিতে তার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি হয়েছে। 

বুধবার রাতে দেবিদ্বার থানা পুলিশ তাকে হাতেনাতে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এরইমধ্যে কুমিল্লা

 বিজ্ঞ আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।গতরাতে দেবিদ্বার থানার ওসি জহিরুল আনোয়ারের নেতৃত্বে  গতরাতে মাশিকাড়া এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয় হয়েছে।

 আজ কুমিল্লা জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে এ বিষয়ে দেবিদ্বার থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জহিরুল আনোয়ার জানান।

আশাশুনিতে আসন্ন শ্রী শ্রী শারদীয় দূর্গা উৎসব উদযাপন উপলক্ষে মতবিনিময়

 আশাশুনিতে আসন্ন শ্রী শ্রী শারদীয় দূর্গা উৎসব উদযাপন উপলক্ষে মতবিনিময়


আহসান  উল্লাহ  বাবলু আশাশুনি সাতক্ষীরা প্রতিনিধি ঃ আশাশুনিতে আসন্ন শ্রী শ্রী শারদীয় দূর্গা উৎসব উদযাপন উপলক্ষে এক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৃৃস্পতিবার সকাল ১১টায় আশাশুনি এতিম ও প্রতিবন্ধি ছেলেমেয়েদের জন্য কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে আসন্ন দূর্গা পুজা উদযাপন উপলক্ষে প্রস্তুতিমূলক সভার আয়োজন করা হয়।


উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে মতবিনিময় সভায় সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মীর আলিফ রেজা, উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক রনজিত বৈদ এর সঞ্চালনায় এসময় থানা অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মাদ গোলাম কবির, সহকারী কমিশনার (ভূমি) শাহিন সুলতানা, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাংসদ প্রতিনিধি শম্ভুজিত মন্ডল, উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি নীলকন্ঠ সম, 


উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান অসীম বরণ চক্রবর্তী, সদর ইউপি চেয়ারম্যান স ম সেলিম রেজা মিলন, কাদামাটি ইউপি চেয়ারম্যান দিপঙ্কর সরকার দ্বীপ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন ও বক্তব্য রাখেন।



মতবিনিময় সভায় করোনা কালিন সময়, আম্পান পরবর্তী বিদ্ধস্ত উপজেলার প্লাবিত এলাকাসহ অন্যান্য এলাকা গুলোতে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সব চেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব উদযাপনে আইন শৃংখলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রন, সামাজিক ও শারীরিক দুরত্ব বজায় রেখে উৎসব পালনের দিক নির্দেশনা মুলক আলোচনা করা হয়।


মতবিনিময় সভায় উপজেলার ১১টি ইউনিয়নের পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি-সম্পাদক, উপজেলার ৯৯টি পূজা মন্দিরের কমিটির নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

মিন্নির সেই স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি হুবহু পাঠকদের কাছে তুলে ধরা হলো; একটা মেয়ে এত জঘন্য হতে পারে?

  মিন্নির সেই স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি হুবহু পাঠকদের কাছে তুলে ধরা হলো; একটা মেয়ে এত জঘন্য হতে পারে?

 

এস.এম নাহিদ হাসান

“আমি বরগুনা সরকারি কলেজে ডিগ্রি প্রথম বর্ষে পড়াশোনা করি। ২০১৮ সালে বরগুনা আইডিয়াল কলেজ থেকে মানবিক বিভাগ থেকে এইচএসসি পাস করি। আইডিয়াল কলেজে পড়াশানা করাকালীন রিফাত শরীফের সাথে ২০১৭ সালে আমার প্রেমের সম্পর্ক হয়। ওই সময় রিফাত শরীফ বামনা ডিগ্রি কলেজের ছাত্র ছিল। রিফাত শরীফ আমাকে তার কয়েকজন বন্ধু-বান্ধবের সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দেয়। তার মধ্যে নয়ন বন্ড একজন। কলেজে যাওয়া আসার পথে নয়ন বন্ড আমাকে প্রেমের প্রস্তাব দিয়ে জ্বালাতন করত। আমি তার প্রেমের প্রস্তাবে সাড়া না দেয়ায় সে আমার বাবা ও ছোট ভাইকে ক্ষতি করার ভয় দেখাত। বিষয়টি আমি রিফাত শরীফকে জানাইনি।

আমি রিফাত শরীফকে ভালোবাসতাম। কিন্তু রিফাত শরীফ অন্য মেয়েদর সঙ্গে সম্পর্ক করার কিছু বিষয় আমি লক্ষ্য করি। এ কারণে রিফাতের সঙ্গে আমার সম্পর্কের কিছুটা অবনতি ঘটে। আমি ধীরে ধীরে নয়ন বন্ডের দিকে ঝুঁকে পড়ি এবং নয়ন বন্ডের সঙ্গে আমার সম্পর্ক গড়ে ওঠে।

আমি নয়নের মোবাইল নম্বরে আমার মায়ের মোবাইল নম্বর এবং নয়নের দেয়া নম্বর শেষে ৬১১৩ ও একটি নম্বর শেষে ৪৫ দিয়ে নয়নকে কল, ম্যাসেজ এবং ফেসবুক ম্যাসেঞ্জারে কল দিতাম। বরগুনা সরকারি কলেজে পড়াকালীন ধীরে ধীরে রিফাত ফরাজী, রিফাত হাওলাদার ও রাব্বি আকনের সঙ্গে আমার পরিচয় হয়। রিফাত ফরাজী ও নয়ন বন্ডের মধ্যে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক ছিল। প্রেমের সম্পর্কে কারণে নয়ন বন্ডের বাসায় আমার যাতায়াত ছিল। নয়নের বাসায় দু’জনের শারীরিক সম্পর্কের কিছু ছবি ও ভিডিও নয়ন গোপনে ধারণ করে। যা আমি প্রথমে জানতাম না।

নয়নের বাসায় আমি প্রায়ই যেতাম এবং আমাদের শারীরিক সম্পর্ক চলতে থাকে। এরপর গত ১৫/১০/১৮ আমি রোজী আন্টির বাসায় যাওয়ার পথে বিকেল বেলা ব্যাংক কলোনি থেকে নয়ন বন্ড রিকশাযোগে আমাকে তার বাসায় নিয়ে যায়।

নয়নের বাসায় গিয়ে আমি শাওন, রাজু, রিফাত ফরাজী এবং আরো ৭/৮ জনকে দেখি। শাওন বাইরে গিয়ে কাজী ডেকে আনে এবং নয়নের বাসায় আমার ও নয়নের বিয়ে হয়। তারপর আমি বাসায় চলে যাই। বাসায় গিয়ে নয়নকে ফোন করে বিয়ের বিষয়টি গোপন রাখতে বলি। তখন নয়ন বলে- ওইটা বালামে ওঠে নাই। বালামে না উঠলে বিয়ে হয় না।

এরপরও আমি নয়নের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক বজায় রাখি। নয়নের সঙ্গে বিয়ের বিষয়টি আমার পরিবারের কেউ জানে না। ২০১৯ সালের শুরুর দিকে কলেজ থেকে পিকনিকে কুয়াকাটা যাওয়ার বাস আমি মিস করি। তখন নয়নের মোটরসাইকেলে আমি কুয়াকাটা যাই এবং নয়নের সঙ্গে একটি হোটেলে রাত্রিযাপন করি।

আমি নয়নের বাসায় আসা যাওয়ার সময় জানতে পারি নয়ন মাদকসেবী, ছিনতাই করে এবং তার নামে থানায় অনেক মামলা আছে। এ কারণে নয়নের সঙ্গে আমার সম্পর্কের অবনতি হয় এবং রিফাত শরীফের সঙ্গে আমার পূর্বের ভালোবাসার সম্পর্ক আবার শুরু হয়। গত ২৬ এপ্রিল পারিবারিকভাবে রিফাত শরীফের সঙ্গে আমার বিয়ে হয়। রিফাত শরীফের সঙ্গে বিয়ের পরও নয়নের সঙ্গে আমার দেখা-সাক্ষাৎ শারীরিক সম্পর্ক, মোবাইলে কথা-বার্তা, ম্যাসেজ এবং ফেসবুকের মেসেঞ্জারে যোগাযোগ-সবই চলত।

বিয়ের পর জানতে পারি রিফাত শরীফও মাদকসেবী। সে মাদকসহ পুলিশের কাছে ধরা খায়। বিষয়টি জানতে পেরে আমি মানসিকভাবে ভেঙে পড়ি। আমি রিফাতসহ আমার বাবার বাসায় থাকতাম। মাঝে মাঝে তাদের বাসায় যেতাম। নয়ন বন্ডের বিষয় নিয়ে রিফাত শরীফের সঙ্গে আমার মাঝে মাঝে কথা কাটাকাটি হতো এবং রিফাত শরীফ আমার গায়ে হাত তুলতো।

গত ২৪ এপ্রিল দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে নয়ন বন্ড আমাকে ফোন দিয়ে বলে, তোর স্বামী, হেলালের ফোন ছিনাইয়া নিয়েছে। পরে রিফাত ফরাজীও আমাকে ফোন দিয়ে বলে, হেলালের মোবাইলটি রিফাতের কাছ থেকে নিয়ে হেলালকে ফেরত দিতে। আমি রিফাত শরীফকে হেলালের ফোন ফেরত দিতে বললে রিফাত শরীফ আমাকে চড় থাপ্পড় মারে এবং তলপেটে লাথি মারে। রাতে মোবাইল ফোনে বিষয়টি নয়নকে জানাই এবং কান্না করি।

পরদিন ২৫ এপ্রিল আমি কলেজে গিয়ে নয়নের বাসায় যাই। রিফাত শরীফকে একটা শিক্ষা দিতে হবে এ কথা নয়নকে বললে নয়ন বলে, হেলালের ফোন নিয়ে যে ঘটনা ঘটেছে তাতে রিফাত ফরাজী তাকে মারবে। তারপর আমি বাসায় চলে আসি এবং এ বিষয়ে কয়েক বার নয়ন বন্ডের সঙ্গে মোবাইলে কথা হয়। নয়ন বন্ডের সঙ্গে আমার স্বামী রিফাত শরীফকে মাইর দিয়া শিক্ষা দিতে হবে, এ পরিকল্পনা করি।

২৬ এপ্রিল আমি কলেজে যাই এবং সায়েন্স বিল্ডিং এর পাশের বেঞ্চের উপর রিফাত ফরাজী, রাব্বি, আকনকে বসা পাই। রিফাত হাওলাদার পাশে দাঁড়ানো ছিল। তখন আমি রিফাত ফরাজীর পাশে বসি এবং রিফাত ফরাজীকে বলি, ওকি ভাইটু খালি হাতে আসছ কেন? এ কথার জবাবে রিফাত হাওলাদার বলে, ওকে মারার জন্য খালি হাত যথেষ্ট।

এরপর রিফাত ফরাজীকে জিজ্ঞাসা করি, নয়ন বন্ড ও রিফাত শরীফ কলেজে এসেছে কীনা? তখন নয়ন বন্ড আমাকে ফোন দেয়। সে কোথায় জানতে চাইলে নতুন ভবনের দিকে যেতে বলে এবং ওই সময় নয়ন নতুন ভবনের পাশের দেয়াল টপকায়ে ভেতরে আসে। আমি হেঁটে নতুন ভবনের দিকে যাই এবং নয়নের সঙ্গে রিফাত শরীফকে মারপিটের বিষয়ে কথা বলি। এরপর রিফাত শরীফ কলেজের ভেতরে আসে এবং আমাকে নিয়ে চলে যাওয়ার জন্য কলেজ থেকে বের হয়ে মোটরসাইকেলের কাছে নিয়ে আসে।

কিন্তু আমি মোটরসাইকেলে না উঠে সময় ক্ষেপণ করার জন্য পুনরায় কলেজ গেটে ফিরে আসি। রিফাত শরীফ আমার পেছন পেছন ফিরে আসে। তখন রিফাত ফরাজী কিছু পোলাপানসহ আসে। রিফাত ফরাজী রিফাত শরীফকে জিজ্ঞাসা করে, তুমি আমার বাবা-মাকে গালি দিয়েছ কেন? রিফাত শরীফ বলে, আমি গালি দেই নাই। ওই সময় রিফাত ফরাজী রিফাতের জামার কলার ধরে এবং রিফাত শরীফকে জাপটে ধরে। রিফাত ফরাজী, টিকটক হৃদয়, রিফাত হাওলাদার এবং আরও অনেকে রিফাত শরীফকে পূর্ব পরিকল্পনার অংশ হিসেবে মারধর করতে করতে এবং টেনে হেঁচড়ে ক্যালিক্সের দিকে নিয়ে যায়।

ক্যালিক্সের সামনে তারা রিফাত শরীফকে এলোপাতাড়ি মারধর শুরু করে। আমি তখন সবার পেছনে ধীরে ধীরে হেঁটে যাচ্ছিলাম। ওই সময় নয়ন বন্ড ক্যালিক্সের সামনে এসে রিফাত শরীফকে কিল ঘুষি মারতে থাকে। মারপিটের মধ্যেই রিফাত ফরাজী টিকটক হৃদয় ও রিফাত হাওলাদার দৌড়ে যায় এবং রিফাত ফরাজী দু’টি দা ও টিকটক হৃদয় এবং রিফাত হাওলাদার লাঠি নিয়ে আসে।

একটি দা দিয়ে নয়ন বন্ড ও অন‌্য দা দিয়ে রিফাত ফরাজী রিফাত শরীফকে কোপাচ্ছিল। রিফাত ফরাজী রিফাত শরীফকে জাপটে ধরে রাখে যাতে রিফাত শরীফ পালাতে না পারে। রিফাত শরীফকে কোপাইতে দেখে আমি নয়ন বন্ডকে বাধা দেয়ার চেষ্টা করি। দায়ের কোপের আঘাতে রিফাত শরীফ রক্তাক্ত হয়। সে রক্তাক্ত অবস্থায় পূর্ব দিকে হেঁটে যায় এবং আমি রাস্তায় পড়ে থাকা জুতা পরি। উপস্থিত একজন আমার হাতে ব্যাগ তুলে দিলে আমি রিকশা করে তাকে বরগুনা জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে আসি।

এরপর আমার বাবাকে ফোন করি। আমার বাবা ও চাচা হাসপাতলে আসে। এরপর রিফাত শরীফকে বরিশাল পাঠানো হয়। আমার কাপড়-চোপড়ে রক্ত লেগে থাকায় আমি বাসায় চলে যাই। পরে আমি জানতে পারি রিফাতের অবস্থা খারাপ। এরপর নয়নকে ফোনে বলি তোমরা ওকে যেভাবে কোপাইছো তাতে তো ও মারা যাবে এবং তুমি আসামি হবা। তারপর ওর অবস্থান জানতে চাই এবং পালাতে বলি। দুপুরের পর খবর পাই রিফাত শরীফ মারা গেছে।”   (... সংগৃহীত)

হবিগঞ্জে এখনও টিকে আছে বিপন্ন বন কুকুর

 হবিগঞ্জে এখনও টিকে আছে বিপন্ন বন  কুকুর

লিটন পাঠান, হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধিঃসাতছড়ি জাতীয় উদ্যানে দেখা মিলেছে বিপন্ন প্রাণী বনকুকুর বা রামকুত্তা সম্প্রতি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি গবেষণা দল সাতছড়ি জাতীয় উদ্যানে এ বনকুকুরের দেখা পেয়েছে আইইউসি এনের তালিকায় এটি বিপন্ন প্রাণী এবং পৃথিবীতে মাত্র দুই হাজার বনকুকুর এখন টিকে আছে। বাংলাদেশের সিলেট ও চট্টগ্রামের কিছু বনে এ বনকুকুর টিকে আছে বলে গবেষক দল ধারণা করছে তবে তা অত্যন্ত দুর্লভ বাংলাদেশ থেকে নেকড়ে বিপন্ন হওয়ার কারণ ছিল নির্বিচারে হত্যা, একইভাবে বনকুকুর মারতেও ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানি এ দেশে পুরস্কার পর্যন্ত ঘোষণা করার কথাও জানা যায় যা প্রাণীটিকে বিলুপ্তির পথে নিয়ে গেছে বাংলাদেশে কতগুলো বন কুকুর আছে তা নিয়ে কোনো গবেষণা


বা জরিপ এখনও হয়নি তবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েকজন গবেষক হবিগঞ্জের সাতছড়ি জাতীয় উদ্যানে এ বনকুকুরের দেখা পেয়েছেন। সেই সঙ্গে ক্রিয়েটিভ ফর কনজারভেশনের অ্যালায়েন্সের ক্যামেরা ট্রাপিংয়ে বান্দরবানে দেখা মিলেছে এ কুকুরের আইইউসিএনের বাংলাদেশের কর্মকর্তা সীমান্ত দিপু জানান বন কুকুরকে বাংলাদেশে বিপন্ন হিসেবে ঘোষণা করেছে আইইউসিএন আইইউসি এনের হিসাবে পৃথিবীতে এ প্রাণী মাত্র ২ হাজারের মতো টিকে আছে হবিগঞ্জের সাতছড়ি জাতীয় উদ্যানে বনকুকুরের দেখা পাওয়া।


ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষক দলটির পরিচালক, প্রাণিবিদ্যা বিভাগের প্রভাষক মুনতাসির আকাশ জানান অঞ্চলভিত্তিক বনকুকুরকে জংলি কুকুর বন কুকুর রামকুকুর লালকুকুর বা ঢোল নামেই ঢাকা হয় এর ইংরেজি নাম এশিয়াটিক ওয়াইল্ড ডগ, নেকড়ে ও কুকুরের সঙ্গে অনেক মিল থাকলেও চেহারা অনেকটা শেয়ালের সঙ্গে মেলে পা খাটো কিন্তু নাকের উপরের অংশ উঁচু লেজ ঝোপালো লেজের আগা কালো মাথা এবং দেহের উপরের অংশ লালচে বাদামি রং কানের ভেতর মুখের নিচ গলা ও দেহের নিচের অংশ সাদা এক সময় বাংলাদেশে এদের সচরাচর দেখা গেলেও বর্তমানে একেবারেই বিরল ও বিপন্ন হয়ে পড়েছে এ কুকুর


আকারে জার্মান শেফার্ডের মতো কিন্তু হিংস্র ও ক্ষিপ্রতায় অন্য যে কোনো প্রাণী থেকে ভয়ঙ্কর। দলের সামনে বাঘ বা চিতা পড়লেও সমীহ করে চলতে হয় ২ থেকে ২০টির মতো কুকুর দল বেঁধে ঘোরে এবং শিকার ধরে পছন্দের খাবার হরিণ শূকর বনছাগল জাতীয় প্রাণী। তবে প্রয়োজনে গরু-মহিষকেও আক্রমণ করে নিজেদের ওজনের ১০ কেজি হলেও বেশি ওজনদার প্রাণীকেও অনায়াসে মেরে ফেলতে পারে বনকুকুর দলের সামনে যে কোনো বড় প্রাণীও অসহায় বড় শিকার ধরার বেলায় প্রাণীকে সামনে-পেছনে উভয় দিক থেকেই আক্রমণ করে বা তাড়িয়ে নিয়ে যায় তাড়াতে তাড়াতে ক্লান্ত করে মারে এরা যে প্রাণীকে টার্গেট করে তাকে প্রথমে চোখে আক্রমণ করে না মরা পর্যন্ত ছাড়ে না।


তাড়িয়ে তাড়িয়ে ক্লান্ত করে মেরে ফেলে তাড়ানো অবস্থায়ই জীবিত প্রাণীটিকে খাবলে খেতে থাকে এভাবে ১০ থেকে ১৫টি কুকুর মিলে খুব কম সময়ের মধ্যেই যে কোনো বড় প্রাণীকে শেষ করে ফেলতে পারে কুকুরের মতো ঘেউ ঘেউ করে না বরং শিস দেয়ার মতো শব্দ করে ডাকে ইংরেজিতে এদের তাই হুইসলিং ডগও বলা হয়। এরা সচরাচর ভালুক চিতাবাঘ বা বাঘকে এড়িয়ে চলে তবে আক্রান্ত হলে তাদেরও ছাড়ে না প্রাকৃতিক বন নষ্ট এবং গণহারে হত্যার কারণে এ প্রাণী প্রায় বিলুপ্ত হয়ে যাচ্ছে, মনতলা সরকারি শাহজালাল কলেজের প্রভাষক আক্তার হোসাইন জানান এখনও এ প্রাণীকে রক্ষা করা সম্ভব।

দৌলতপুরের মথুরাপুর ইউনিয়ন পরিষদে বিট পুলিশিং উদ্বোধন

দৌলতপুরের মথুরাপুর ইউনিয়ন পরিষদে বিট পুলিশিং উদ্বোধন




কুষ্টিয়া জেলা প্রতিনিধি//কুষ্টিয়া দৌলতপুর উপজেলার মথুরাপুর ইউনিয়ন পরিষদে বিট পুলিশিং সেবা চালু করা হয়। 

আজ ১ লা অক্টোবর ২০২০ সকাল সাড়ে ১০ ঘটিকায় এ কার্যক্রম উদ্বোধন করেন দৌলতপুর থানার তদন্ত অফিসার নিশিকান্ত সরকার।


এসময় উপস্থিত ছিলেন ২ নং খাস মথুরাপুর  ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জনাব সদ্দার হাসিম উদ্দীন হাসু,মথুরাপুর পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ সন্জিত কুমার, দৌলতপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের তথ্য বিষয়ক সম্পাদক টিপু নেওয়াজ, এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় গন্য মান্য ব্যাক্তিবর্গ।


এসময়ে দৌলতপুর থানার তদন্ত অফিসার নিশিকান্ত সরকার বলেন, এই পুলিশিং বিট সেবার মাধ্যমে  যেকোন তথ্য দিলে পুলিশ তাৎক্ষণিক সেবা দিবে।

সিরাজগঞ্জ ২৫০ পিচ ইয়াবা ট্যাবলেট সহ ১ জন আটক

সিরাজগঞ্জ ২৫০ পিচ ইয়াবা ট্যাবলেট সহ ১ জন আটক

মাসুদ রানা সিরাজগঞ্জ জেলাপ্রতিনিধিঃসিরাজগঞ্জ ২৫০ পিচ ইয়াবা ট্যাবলেট সহ এক মাদক ব্যাবসায়ী গ্রেফতার করেন ডিবি পুলিশ। ওসি ডিবি মিজানুর রহমান জানান সিরাজগঞ্জ জনাব হাসিবুল আলম, বিপিএম মহোদয়ের দিক নির্দেশনায়  এসআই/পলাশ চন্দ্র চৌধুরী  সহ তাহার সঙ্গীয় অফিসার-ফোর্স এর সহায়তায় গত কার বুধ বার রাএি  ২০.৫৫  ঘটিকার সময় সিরাজগঞ্জ থানাধীন শিয়ালকোল বাজারস্থ হইতে শাহাজাদ পুর চড়া চিথুলিয়া গ্রামের মৃত ফিরোজ মন্ডলের ছেলে মোঃ সোহেল রানা (৩৫)    কে ২৫০ পিচ ইয়াবা ট্যাবলেট সহ গ্রেফতার করা হইয়াছে। এই সংক্রান্তে  সিরাজগঞ্জ  থানায় মামলা রুজু প্রক্রিয়াধীন।

বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষতে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ

বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষতে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ

 

বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষতে নিম্নলিখিত পদে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত হয়েছে :

পদের নাম : প্রোগ্রামার (গ্রেড-৬)
শিক্ষাগত যোগ্যতা : যে কোন স্বীকৃত  বিশ্ববিদ্যালয়  হতে   কম্পিউটার   সায়েন্স/কম্পিউটার   সায়েন্স   এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং/ইলেকট্রিক্যাল এন্ড  ইলেকট্রনিক্স  ইঞ্জিনিয়ারিং/ ইনফরমেশন  এন্ড  কমিনিউকেশন টেকনোলজি  সংশ্লিষ্ট  বিষয়ে  অন্যুন  দ্বিতীয়  শ্রেণি বা  সমমানের  সিজিপিএসহ  ৪(চার)  বৎসর মেয়াদি  স্নাতক বা সমমানের ডিগ্রি।
পদ সংখ্যা : ০১টি

 
পদের নাম : কম্পিউটার অপারেটর (গ্রেড-১৩)
শিক্ষাগত যোগ্যতা : যেকোন স্বীকৃত বিশ্ববিদ্যালয় হতে বিজ্ঞান বিভাগে স্নাতক(সম্মান) বা সমমানের ডিগ্রি।
পদ সংখ্যা : ১০টি


পদের নাম : ডাটাএন্ট্রি/কন্ট্রোল অপারেটর (গ্রেড-১৬)
শিক্ষাগত যোগ্যতা : যে কোন স্বীকৃত বোর্ড হতে উচ্চ মাধ্যমিক সর্টিফিকেট বা সমমানের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ।
পদ সংখ্যা : ২০টি

আবেদন ফরম পূরণ এবং ফি জমাদানের তারিখ ও সময় : ০১/১০/২০২০ ইং সকাল ১০:০০ টা হতে ২২/১০/২০২০ ইং বিকাল ০৬:০০ টা পর্যন্ত।

সরাসরি http://idra.teletalk.com.bd/ এই লিংকে গিয়ে আবেদন করা যাবে।

পুঁথি গবেষক আবদুল করিম সাহিত্য বিশারদের ৬৭ তম মৃত্যু বার্ষিকী পালিত

 পুঁথি গবেষক আবদুল করিম সাহিত্য বিশারদের ৬৭ তম মৃত্যু বার্ষিকী পালিত



সেলিম চৌধুরী স্টাফ রিপোর্টারঃ-  বাংলা  সাহিত্যের অমর পুথিঁ গবেষক মুন্সি আবদুল করিম সাহিত্য বিশারদের ৬৭ তম  মৃত্যু বার্ষিকী পালিত হয়েছে ।  গতকাল বুধবার বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্য দিয়ে সাহিত্য বিশারদ স্মৃতি সংসদের উদ্যোগে রাজনীতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক সহ বিভিন্ন সংগঠনের নেতৃবৃন্দরা তার স্মৃতি সৌধে  পুষ্পমাল্য অর্পন করার পরেই। সাহিত্য বিশারদ স্মৃতি সংসদ প্রাঙ্গনে খতমে কোরআন ও মিলাদ মাহফিল স্মরণ সভা অনুষ্ঠিত হয় । এ  দিনে ১৮৭১ সালে ১১ অক্টোবর পটিয়ার ঐতিহ্যবাহী সুচক্রদন্ডী গ্রামে  জন্মগ্রহন ও ১৯৫৩ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর মৃত্যুবরণ করেন তিনি। প্রতি বছরের ন্যায় এ বছরও নানান কর্মসূচির মধ্য দিয়ে   সাহিত্য  বিশারদ স্মৃতি সংসদের প্রতিষ্ঠাতা  মুহাম্মদ   ছৈয়দ চেয়ারম্যান, সংসদের সভাপতি মো. সাইফুল্লাহ পলাশ, সাধারণ সম্পাদক বাবলু চৌধুরীর নেতৃত্বে এ দিবসটি যথাযোগ্য মর্যাদায় পালন করা হয়েছে। উল্লেখ্য, সাহিত্য বিশারদ  আবদুল করিম ১৮৬৯, মতান্তরে ১৮৭১ সালের ১১ অক্টোবর পটিয়া মহকুমার সুচক্রদন্ডী গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতা মুনশী নুরউদ্দীন। তার মাতা মিস্রীজান প্রখ্যাত পাঠান তরফদার দৌলত হামজা বংশের মেয়ে । জন্মের কয়েক মাস আগে তার বাবার  মৃত্যু ও ১৭ বছর বয়সে মাতৃহীন আবদুল করিম দাদা-দাদি ও চাচা-চাচির স্নেহ ছায়ায় এন্ট্রান্স পাস করেন।  সচেষ্টায় বাংলা, সাংস্কৃত, আরবি ও ফারসি ভাষায় ব্যুৎপত্তি লাভ করে।  পড়াশোনা শুরু হয়েছিল বাড়ির দেউরিতে। সেখানেই তিনি আরবি-ফারসি ও বাংলায় পড়া শুরু করেন। অতঃপর তিনি সুচক্রদন্ডী মধ্যবঙ্গ বিদ্যালয়ে ভর্তি হন। এক বছর পড়াশোনার  পর  পটিয়া উর্চ্চ ইংরেজি বিদ্যালয়ে ভর্তি হন। ১৮৯৩ সালে প্রবেশিকা পরীক্ষায় দ্বিতীয় বিভাগে উত্তীর্ণ হন। এন্ট্রান্স পরীক্ষায় তার দ্বিতীয় ভাষা ছিল সাংস্কৃত,  সঙ্গত কারণে উনিশ শতকে এন্ট্রান্স পাস করতে ইংরেজি ভাষা  জ্ঞানেও পারদর্শী। চট্টগ্রাম কলেজে দু’বছর এফএ পড়ার পর ১৮৯৭ সালের ভয়াবহ প্রাকৃতিক দুর্যোগে চট্টগ্রাম অঞ্চলের প্রায় পরিবারের মতো তাদের পরিবারেও অর্থনৈতিক অসচ্ছল ও আর্থিক অবস্থা  চরম পর্য্যায়ে কিন্তু পরীক্ষার আগেই  টাইফয়েড জ্বরে  আক্রান্ত হন। ফলে তার আর এফ এ পরীক্ষা দেয়া হয়নি। তার আর  উচ্চ শিক্ষার আশার আলো পুরন  হয়নি। তিনি  বাল্যকাল থেকে পুঁথি পত্রের  খুবই আগ্রহী। সারা জীবন তার নেশা ছিল দৈনিক-সাপ্তাহিক-পাক্ষি-মাসিক বই পুস্তক, কাহিনি  সহ নানান  পত্রিকা পাঠ ও সংগ্রহ। তাঁর পিতামহ কর্তৃক সংগৃহীত পুঁথির সঙ্গে পরিচিত হন। পুঁথি গুলো পড়ে  পুঁথি সংগ্রহ ও  লিখতে আগ্রহী পুঁথির  মধ্যেই  ‘চন্ডী দাসের পদাবলী’ সহ নানান পদাবলী।  সে সময়ে  এফ এ ক্লাসের ছাত্র। আচার্য অক্ষয় সরকার সম্পাদিত ‘পূর্ণিমা’ পত্রিকায় ‘প্রাচীন পদাবলীর একটি প্রবন্ধ লেখেন। এ প্রবন্ধ পাঠ করেই মহাকবি নবীন চন্দ্র সেন সাহিত্য বিশারদের প্রতি আকৃষ্ট হন। ১৮৯৫ সালে চট্টগ্রাম মিউনিসিপ্যাল স্কুলের শিক্ষক হিসাবে কর্ম  জীবন শুরু করেন। পরবর্তীতে  সীতাকুন্ড মধ্য ইংরেজি স্কুলের অস্থায়ী প্রধান শিক্ষক হন। চট্টগ্রামে প্রথম সাব-জজ আদালতে অ্যাপ্রেন্টিস হিসেবে কাজ করেন। পরে কবি নবীন সেনের সুপারিশে চট্টগ্রাম কমিশনার অফিসে যোগদান করেন।১৯৩৪ সালে তিনি চাকরি থেকে অবসর গ্রহণ করেন।তিনি আর্চায্য জনক  ব্যক্তি,  আজীবন প্রাচীন ও মধ্যযুগের বাংলা সাহিত্যের  বাঙালি লেখকেরা যখন পাশ্চাত্য সাহিত্যের প্রভাবে ও অনুরাগে আধুনিক বাংলা সাহিত্য সৃষ্টিতে নিজেরা  নিয়োজিত হন তখন  প্রাচীন ও মধ্যযুগের পুঁথি সংগ্রহ, পুঁথির রণাবেণ ও পুঁথি সম্পাদনায় নিজেকে নিয়োজিত ছিলেন । মূলত পুঁথি সংগ্রহ, পুঁথির রণাবেণ ও পুঁথি সম্পাদন ছিল তার জীবনের ব্রত। বর্ণাঢ্য জীবনে তিনি বাংলা সাহিত্যের প্রধান উপাদান পুঁথি পত্র ও এ দেশের প্রাচীন ও মধ্য যুগের লৌকজ-সাহিত্যের ভাণ্ডারকে সমৃদ্ধ করেছেন। তাঁর সম্পাদিত নরোত্তম ঠাকুরের ‘রাধিকার মানভঙ্গ’, কবিবল¬ভের ‘সত্যনারায়ণের পুথিঁ’, দ্বিজ রতিদেবের ‘মৃগলুব্ধ’ রামরাজার ‘মৃগলুব্ধ সম্বাদ’, দ্বিজ মাধবের ‘গঙ্গামঙ্গল’, আলী রাজার ‘জ্ঞানসাগর’, বাসুদেব ঘোষের ‘শ্রীগৌরাঙ্গ সন্ন্যাস’, মুক্তারাম সেনের ‘সারদামঙ্গল’, শেখ ফয়জুল¬াহর ‘গোরক্ষবিজয়’ ও আলাওলের ‘পদ্মাবতী’ (খণ্ডাংশ) বঙ্গীয় সাহিত্য পরিষৎ থেকে প্রকাশিত। ‘ইসলামাবাদ’ (চট্টগ্রামের সচিত্র ইতিহাস) ও ‘আরাকান রাজসভায় বাঙ্গলা সাহিত্য’ (মুহম্মদ এনামুল হকের সহযোগে রচিত) তাঁর দুটি মৌলিক গ্রন্থ। উনিশ-বিশ শতকের রেনেসাঁর মানস  পুত্রদের একজন। তার সময়ে খাঁটি বাঙালির সংখ্যা কমই ছিল। তাঁর সময়ে উপমহা দেশের রাজনীতি ও সংস্কৃতি সাম্প্রদায়িক চেতনায়, ওই পঙ্কিল স্রোত কলুষিত করতে পারেনি। নিরলস সাহিত্য-সাধনার স্বীকৃতিস্বরূপ ১৯০৯ সালে চট্টল ধর্মমণ্ডলী কর্তৃক ‘সাহিত্য বিশারদ’ উপাধি এবং ১৯২০ সালে নদীয়ার সাহিত্য সভার কাছ থেকে ‘সাহিত্য সাগর’ উপাধি লাভ। তাকে  যথাযথ সম্মান প্রদর্শন করতে পারিনি। তা সত্ত্বেও চট্টগ্রাম পৌর সদর তার স্মৃতির প্রতি সম্মান প্রদর্শন করে চট্টগ্রামের লাভ লেইন সড়কটির নাম পরিবর্তন করে আব্দুল করিম সাহিত্য  বিশারদ সড়ক নামকরণ করা হয় । দেরীতে হলেও সাহিত্যে অসাধারণ অবদানের জন্য বাংলাদেশ সরকার ১৯৯৫ সালে তাকে মরণোত্তর স্বাধীনতা পদক প্রদান । বাংলা সাহিত্যের  অতুলনীয় সাহিত্যকর্মী ১৯৫৩ খ্রিষ্টাব্দের ৩০ সেপ্টেম্বর চট্টগ্রামের নিজ বাসভবনে ‘চট্টগ্রামের অজানা কাহিনী’ লিখতে বসে ১০টা ৪৭ মিনিটে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন।মহান সাধকের ৬৭ তম মৃত্যু  বার্ষিকী  দিবসটি  এ দিনে পালিত হয়। এছাড়াও ঢাকা চট্টগ্রাম সহ বিভিন্ন উপজেলা আবদুল করিম সাহিত্য বিশারদের ৬৭তম মৃত্যু বার্ষিকী পালন করেন।

গোপালপুরের মাহমুদপুর ও পানকাতায় গণহত্যা দিবস পালিত

গোপালপুরের মাহমুদপুর ও পানকাতায় গণহত্যা দিবস পালিত

ডা.এম.এ.মান্নান,টাঙ্গাইল জেলা প্রতিনিধি:টাঙ্গাইলের গোপালপুর ও ধনবাড়ী উপজেলার মাহমুদপুর-পানকাতা গণহত্যা দিবস পালন করা হয়েছে । এ উপলক্ষে ৩০ সেপ্টেম্বর দুপুরে গোপালপুর প্রেসক্লাবের উদ্যােগে পানকাতা ইসলামীয়া উচ্চ বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।


প্রেসক্লাব সভাপতি অধ্যাপক জয়নাল আবদীনের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন গোপালপুর উপজেলা পরিষদের ভাইসচেয়ারম্যান মীর রেজাউল হক, হাদিরা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এবং সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আব্দুল কাদের তালুকদার, থানা কমিউনিটি পুলিশিং এর সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার কে এম গিয়াস উদ্দিন, শিক্ষক সমিতির সভাপতি জি এম ফারুখ, প্রধান শিক্ষক মোফাখারুল ইসলাম লেবু, ধনবাড়ী উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি স ম জাহাঙ্গীর আলম, ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সম্পাদক ইদ্রিস হোসন, গোপালপুর প্রেসক্লাবের সম্পাদক সন্তোষ কুমার দত্ত, শহীদ পরিবারের সদস্য জাহাঙ্গীর হোসন প্রমুখ।


বক্তারা একাত্তরের ৩০ সেপ্টম্বর পাকিস্তানী হানাদার বাহিনীর হাতে ১৮ জন শহীদের স্মৃতি রক্ষার্থে একটি স্মৃতিস্তম্ব নির্মাণের দাবি জানান।


উল্লেখ্য, একাত্তর সালের এ দিন পাকিস্তানী হানাদার বাহিনী ও তাদের দোসর রাজাকার ও আলবদররা সাবেক এমএনএ হাতেম আলী তালুকদারের বাড়িতে অগ্নিসংযোগের পর সামনে অগ্রসর হয়। মাহমুদপুর বটতলা মাঠে আসলে কাদেরিয়া বাহিনীর কোম্পানি কমান্ডার হুমায়ুন বাঙ্গালের মুক্তিযোদ্ধাদের সাথে রক্তক্ষয়ী যুদ্ধ সংঘটিত হয়। এক পর্যায়ে যুদ্ধের রসদ ফুরিয়ে গেলে মুক্তিযোদ্ধারা পিছু হটতে বাধ্য হয়। এরপর হানাদাররা মাহমুদপুর ও পানকাতা গ্রামের বহু বাড়িঘর পুড়িয়ে দেয়। যাকে সামনে পায় তাকেই গুলি করে। ফলে ১৮ জন শহীদ হন। গুরুতর আহত হন ১০ জন।

ঝিনাইদহ র‌্যাব-৬'র হাতে অস্ত্র ও গুলিসহ গ্রেফতার-১

 ঝিনাইদহ র‌্যাব-৬'র হাতে অস্ত্র ও গুলিসহ গ্রেফতার-১


খোন্দকার আব্দুল্লাহ বাশার,খুলনা ব্যুরো প্রধান:চুয়াডাঙ্গায় নিষিদ্ধ ঘোষিত পূর্বাংলা কমিউনিস্ট পার্টির সক্রিয় সদস্য ও আলোচিত সন্ত্রাসী সুলতান ঝিনাইদহ র‌্যাব-৬'র জালে অস্ত্র ও গুলিসহ গ্রেফতার হয়েছে। গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে র‌্যাব-৬, সিপিসি-২, ঝিনাইদহ ক্যাম্পের একটি আভিযানিক দল  কোম্পানী কমান্ডার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ কামাল উদ্দিন এবং স্কোয়াড কমান্ডার এএসপি এইচ এম শফিকুর রহমান এর নেতৃত্বে ৩০ সেপ্টেম্বর বুধবার বিকালে চুয়াডাঙ্গা জেলার সদর থানার সন্ত্রাস বিরোধী অভিযান পরিচালনা করার নিমিত্তে গমন করেন। পরবর্তীতে সময় চুয়াডাঙ্গা জেলার সদর থানাধীন কুতুবপুর বাজারস্থ কুতুবপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের বিপরীত দিকে পাকা রাস্তার পশ্চিম পাশে অভিযান পরিচালনা করে নিষিদ্ধ ঘোষিত পূর্বাংলা কমিউনিস্ট পার্টির সক্রিয় সদস্য ও আলোচিত কুখ্যাত অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী মোঃ সুলতান আলী মন্ডল ওরফে সুলতান হোসেন (৫৭), পিতা- মৃত ফকির মন্ডল @ ফকির চাঁদ ওরফে কালো ফকির, সাং- কুতুবপুর দক্ষিণপাড়া, থানা ও জেলা- চুয়াডাঙ্গাকে গ্রেফতার করে। উক্ত  গ্রেফতারকৃত আসামীর দখল হতে ০১ টি  সচল ওয়ান শুটার গান এবং ০১ রাউন্ড তাজা গুলি উদ্ধার করা হয়। গ্রেফতারকৃত আসামীর বিরুদ্ধে চুয়াডাঙ্গা জেলার বিভিন্ন থানায় অস্ত্র,  হত্যা, ডাকাতি ও চাঁদাবাজিসহ একাধিক মামলা রয়েছে। উল্লেখ্য যে, ধৃত আসামি ১৯৯৫ সালে আলমডাংগা থানার একটি অস্ত্র মামলায় ১৪ বছর সশ্রম কারাদণ্ড ভোগ করেছে। পরবর্তীতে গ্রেফতারকৃত আসামীকে চুয়াডাঙ্গা জেলার সদর থানায় হস্তান্তর করত ১৮৭৮ সালের অস্ত্র আইনে মামলা দায়ের করা হয়।

মাধবপুরে বিউটি পার্লারে ৪ নারীর উপর হামলা

 মাধবপুরে বিউটি পার্লারে ৪ নারীর উপর হামলা

লিটন পাঠান, হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধিঃহবিগঞ্জের মাধবপুর পৌর বাজারে সুরেরশ প্লাজায় ৩য় তলায় সুকন্যা বিউটি পার্লারে ৪ নারীর উপর হামলার ঘটনা ঘটেছে। বিউটি পার্লার পরিচালক রুকেয়া বেগম ৪ জনকে আসামী করে মাধবপুর থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন ঘটনাটি ধামাচাপা দিতে একটি প্রভাবশালী, মহল তৎপর হয়ে উঠেছে পরিচালক রুকেয়া বেগম জানান সুরেশ প্লাজার মালিক সুকেশ রায়ের কাছ থেকে সুরেশ প্লাজায় ৩য় তলায় একটি ফ্ল্যাট ভাড়া নিয়ে সুকন্যা বিউটি পার্লালের একটি দোকান খুলেন।


কিন্তু গত ২৬ সেপ্টেম্বর মাধবপুর বাজার ব্যবসায়ী সনজিত রায় তার স্ত্রী হেপি রায় ও ছেলে তনয় রায় দুপুর ১টার দিকে ৩য় তলায় তাদের বিউটি পালার্রে ঢুকে এলোপাতারি হামলা চালায়। এ সময় তারা রুকেয়া বেগম লাকি বেগম ঝর্না বেগম ও শান্তা বেগমকে শারীরিকভাবে মারধর করে টাকা পয়সা ছিনিয়ে নেয়।

প্রত্যক্ষদর্শী ব্র্যাক ব্যাংক কর্মকর্তা ফয়সল ও পুলক জানান হঠাৎ ওই দিন দুপুরে বিউটি পার্লালের ভিতরে কান্না কাটি ও হৈ হুল্লোলের শব্দ পেয়ে এগিয়ে গিয়ে দেখি কিছু লোক বিউটি পার্লালের নারী কর্মীদের মারধর ও টানা হেছড়া করছে।


এ ব্যাপারে সনজিত রায়ের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান ফ্ল্যাট ভাড়ার জটিলতা নিয়ে বিউটি পার্লারে তর্কবিতর্ক হয়েছে। তবে কোন মারামারির ঘটনা ঘটেনি অভিযোগের তদন্ত কর্মকর্তা মাধবপুর থানার এসআই জহিরুল ইসলাম জানান, খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি বাজার কমিটি বিষয়টি নিষ্পত্তি করে দিবে বলে সময় চেয়েছেন যদি সমঝোতা করতে ব্যর্থ হয় তাহলে আইনী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সাতক্ষীরা তথ্য অফিস এর উদ্যোগে পানিতে ডুবে শিশুর মৃত্যু প্রতিরোধে সড়ক প্রচার

সাতক্ষীরা তথ্য অফিস এর উদ্যোগে পানিতে ডুবে শিশুর মৃত্যু প্রতিরোধে সড়ক প্রচার

আজহারুল ইসলাম সাদী, স্টাফ রিপোর্টারঃ গণযোগাযোগ অধিদপ্তর তথ্য মন্ত্রণালয় এর সহযোগীতায়, সাতক্ষীরা জেলা তথ্য অফিস এর আয়োজনে, জেলার বিভিন্ন এলাকায় পানিতে ডুবে শিশুর মৃত্যু প্রতিরোধে  জনসচেতনা মূলক সড়ক প্রচার (সেপ্টেম্বর- অক্টোবর) কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে। 

এরই ধারাবাহিকতায়  বুধবার (৩০ সেপ্টেম্বর) 

জেলা তথ্য অফিস, সাতক্ষীরা'র আয়োজনে, তালা উপজেলার নগরঘাটা, সরুলিয়া ও ধানদিয়া ইউনিয়নের প্রধান প্রধান সড়ক, হাট- বাজার ও পাড়া- মহল্লায় C4D খাতের আওতায় "পানিতে ডুবে শিশুমৃত্যু প্রতিরোধ" শীর্ষক প্রচার কার্যক্রম বাস্তবায়নের ভিডিও এবং স্থিরচিত্র প্রদর্শন করা হয়।