বড়লেখায় প্রশাসনের পক্ষ থেকে দূর্গাপূজার শুভেচ্ছা বিনিময়

 বড়লেখায় প্রশাসনের পক্ষ থেকে দূর্গাপূজার শুভেচ্ছা বিনিময়



আকরাম হোসাইন মৌলভীবাজার জেলা প্রতিনিধি :: মৌলভীবাজারের বড়লেখা উপজেলা নির্বাহী অফিসার,বড়লেখা মোঃ শামীম আল ইমরান আজ বড়লেখা উপজেলার বিভিন্ন দূর্গাপূজার মণ্ডপ পরিদর্শন করেন। এসময় বড়লেখা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা  মোঃ জাহাঙ্গীর আলম সর্দার, উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা মোঃ সাইফুল ইসলাম, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মোঃ উবায়েদ উল্লাহ খান, একাডেমিক সুপারভাইজার মোঃ শাখাওয়াত হোসেন, উত্তর শাহবাজপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আহমেদ জুবায়ের লিটন, দাসের বাজার ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ কমর উদ্দিন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।এসময় সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সাথ শারদীয় দূর্গাপূজার শুভেচ্ছা বিনিময় করে স্বাস্থ্যবিধি মেনে শারদীয় দূর্গাপূজা উদযাপনের আহবান জানানো হয় এবং নিরাপত্তাসহ সার্বিক পরিস্থিতির খোজ খবর নেয়া হয়।

স্বাস্থ্যবিধি মেনে উৎসবমুখরভাবে উদযাপিত হচ্ছে দূর্গা পূজা- ডিসি

 স্বাস্থ্যবিধি মেনে উৎসবমুখরভাবে উদযাপিত হচ্ছে দূর্গা পূজা- ডিসি


মোঃ সবুজ মিয়া বগুড়া প্রতিনিধিঃবগুড়া জেলা প্রশাসক (ডিসি) মো: জিয়াউল হক বলেছেন, করোনাকালীন সময়ের মাঝে স্বাস্থ্যবিধি মেনেই বগুড়ায় উৎসবমুখর পরিবেশে উদযাপিত হচ্ছে শারদীয় দুর্গাপূজা। তবে নিজেদের সুরক্ষার কথা চিন্তা করে সকলকে মাস্কের যথাযথ ব্যবহার এবং মন্দিরে দর্শনার্থীদের স্বাস্থ্যবিধি কঠোরভাবে অনুসরণ করতে হবে।

বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ বগুড়া পৌর কমিটির আয়োজনে শহরের চেলোপাড়া সার্বজনীন কালী মন্দির প্রাঙ্গণে শারদীয় দুর্গাপূজা ২০২০ইং উপলক্ষ্যে করোনায় ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের সদস্য ও প্রতি বছরের ন্যায় ২য় দফায় এলাকার সাধারণ মানুষের মাঝে বস্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি উপোরোক্ত কথাগুলি বলেন। বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ বগুড়া পৌর কমিটির সভাপতি পরিমল প্রসাদ রাজের সার্বিক ব্যবস্থাপনায় অনুষ্ঠানে ডিসি জিয়াউল হক আরো বলেন, দুর্গাপূজা আদিকাল থেকে বাঙ্গালির একটি উৎসব হিসেবে পালিত হয়ে আসছে। ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে শুরু থেকে পূজার শেষ দিন পর্যন্ত সকলকে ঐক্যবদ্ধভাবে সার্বিক দিকে খেয়াল রাখতে হবে। জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সর্বদা সকল ধরনের সহযোগিতা বগুড়ায় অব্যাহত থাকবে মর্মেও প্রতিশ্রুতি দেন তিনি। পরিশেষে ধর্ম, বর্ণ, নির্বিশেষে বস্ত্র বিতরণ আয়োজন করার জন্যে তিনি আয়োজকদেরও ধন্যবাদ জানান।  

বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ বগুড়া পৌর কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক সঞ্জু রায়ের পরিচালনায় বস্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বগুড়া সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আজিজুর রহমান, সহকারী কমিশনার (গোপনীয়) আশরাফুর রহমান, জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক প্রদীপ কুমার রায়, বগুড়া প্রেস ক্লাবের সহ-সভাপতি আব্দুস সালাম বাবু, নারুলী পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ ইন্সপেক্টর জামিরুল ইসলাম এবং ডেন্টিস্ট সুজিত কুমার তালুকদার। এছাড়াও অন্যান্যদের মাঝে উপস্থিত ছিলেন পূজা উদযাপন পরিষদ পৌর কমিটির কোষাধ্যক্ষ জীবন দাস, প্রচার সম্পাদক নীতি রঞ্জন সরকার, সাংস্কৃতিক সম্পাদক চন্দন কুমার রায়, বিদ্যুৎ সাহা, বিশিষ্ট সমাজসেবক যথাক্রমে ফরহাদ রাজিব ও আমিনুর রহমান সাগর, ব্যবসায়ী রাজু আহম্মেদ, ৬ নং ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সভাপতি মোহাম্মদ আলী শান্ত প্রমুখ। অনুষ্ঠানে ২য় ধাপে ধর্ম, বর্ণ, নির্বিশেষে শতাধিক মানুষের মাঝে পর্যায়ক্রমে শাড়ি, লুঙ্গি ও মাস্ক বিতরণ করা হয়েছে।

সড়ক দুর্ঘটনায় প্রধান শিক্ষিকা নিহত

সড়ক দুর্ঘটনায় প্রধান শিক্ষিকা নিহত


  

রাজশাহী ব্যুরোঃজয়পুরহাটের আক্কেলপুর পৌরসভার শাহ মাখদুম সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা নূরজাহান বেগম সড়ক দুঘটনায় নিহত হয়েছে। আজ শনিবার বৈকাল ৫টার দিকে এ দুর্গ ঘটনা  ঘটে। জয়পুরহাট সদর থানার পুলিশ পরিদর্শক তদন্ত ওসি মোঃসাইদুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।পারিবারিক সুত্রে জানাগেছে,আক্কেলপুর পৌরসভার হাজিপাড়া গ্রামের প্রফেসর মোঃ ফারুক হোসেনের স্ত্রী ও পৌরসভার শাহ মাখদুম সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা সে নূরজাহান বেগম পারিবারিক কাজ শেষ করে মোটর সাইকেল যোগে আক্কেলপুর ফেরার পথে সুক্তাহার নামকস্থানে পৌছালে অপরদিক থেকে আসা একটি ট্রাকের ধাক্কায় ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়।তার মৃত্যুতে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

দৌলতপুরে মিথ্যা সংবাদের প্রতিবাদে যুবলীগ নেতার সংবাদ সম্মেলন

দৌলতপুরে মিথ্যা সংবাদের প্রতিবাদে যুবলীগ নেতার সংবাদ সম্মেলন

কুষ্টিয়া জেলা প্রতিনিধি //এম,ডি,আল আসিবুজ্জামান চঞ্চলঃকুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. আব্দুল কাদের সংবাদ সম্মেলন করে তার বিরুদ্ধে প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ জানিয়েছেন। শনিবার বেলা সাড়ে ১১টায় দৌলতপুর উপজেলা বাজারে নিজ কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে স্থানীয় পত্রিকা ও অনলাইন গণমাধ্যমে প্রকাশিত ও প্রচারিত সংবাদ মিথ্যা ও ভিত্তিহীন দাবি করে প্রতিবাদ জানান তিনি। সংবাদ সম্মেলনে মো. আব্দুল কাদের লিখিত বক্তব্যে উল্লেখ করেন, ‘গত ২২ অক্টোবর কতিপয় স্থানীয় পত্রিকা ও বিভিন্ন অনলাইন মিডিয়াতে আমার নাম উল্লেখ করে সাব-রেজিষ্টার অফিসে দলিল প্রতি চাঁদা আদায়ের কথা উল্লেখ করা হয়েছে যা খুবই দুঃখজনক ও নিন্দনীয়। ওইসব খবর অপেশাদার ভাবে বানোয়াট তথ্য দিয়ে আমার নামে কুৎসারটনা করা হয়েছে যা আমার রাজনৈতিক সংগঠন বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগসহ আওয়ামীলীগের মান ক্ষুন্ন করেছে। আমাকে রাজনৈতিক ও সামাজিকভাবে হেও প্রতিপন্ন করতে এই অপপ্রচার চালানো হয়েছে বলে উল্লেখ করেন তিনি’।


লিখিত বক্তব্যে তিনি আরও উল্লেখ করেন, ‘আমার বাড়ি ও আমার দলীয় কার্যালয় উপজেলা পরিষদের সাথ হওয়ায় দৌলতপুর উপজেলা পরিষদ ও সাব-রেজিষ্ট্রার অফিসের ভৌগলিক অবস্থান খুবই কাছাকাছি। যেহেতু আমি মুজিব আদর্শের রাজনীতির সাথে জড়িত এবং রাজনীতির মুল আদর্শ হল জন সেবা করা। তাই দৌলতপুর উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন থেকে আগত মানুষদের আমরা সার্বক্ষনিক সেবা দিয়ে থাকি। একটি কুচক্রী মহল আমাদের রাজনৈতিক অবস্থান বিতর্কিত করতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ বিভিন্ন গণমাধ্যমে বিভ্রান্তিকর তথ্য ছড়িয়ে আসছে, যা ইতোপূর্বেও কিছু সংখ্যক ফেইক ফেইসবুক আইডির মাধ্যমে চালানো হয়েছে যা দৌলতপুরের গণমাধ্যম কর্মীরা দেখেছেন। তিনি প্রকাশিত ও প্রচারিত ওইসব সংবাদ মিথ্যা ও ভিত্তিহীন দাবি করে পরবর্তীতে আমার রাজনৈতিক সুনাম নষ্ট করতে এ ধরণের মনগড়া তথ্য দিয়ে খবর প্রকাশ করা হলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করার কথা উল্লেখ করেন। সংবাদ সম্মেলনে দৌলতপুরের গণমাধ্যমকর্মীসহ দলীয় নেতা-কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

সাফদারপুরের বীর মুক্তিযোদ্ধার ১৭ তম মৃত্যু বার্ষিকী

 সাফদারপুরের বীর মুক্তিযোদ্ধার ১৭ তম মৃত্যু বার্ষিকী

তাহের খাঁন||আজ ২৪ অক্টোবর কোটচাঁদপুর উপজেলার সাফদারপুর ইউনিয়নের সাবেক জনপ্রিয়  চেয়ারম্যান ও বিশিষ্ট অাওয়ামীলীগ নেতা  শেখ আব্দুল জলিল এর ১৭তম  মৃত্যু বার্ষিকী। তিনি এলাকার উন্নায়নে খুবই গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা পালন করেন তার সময়ে এলাকার ব্যাপক উন্নয়ন হয় যার মাঝে, মসজিদ, মাদ্রাসা, রাস্তাঘাট উল্লেখযোগ্য।  আজও এলাকাবসী গভীর শ্রদ্ধাভরে স্বরণ করেন এই মহান নেতাকে।২০০৩ সালের ২৪ অক্টোবর রাত সাড়ে ৮ টার দিকে এই দিনে সকলকে কাঁদিয়ে শোকের সাগরে ভাসিয়ে সন্তানদের কে  এতিম করে তিনি না ফেরার দেশে চলে যান। মৃত্যুর আগ-মুহুর্তেও তিনি দলীয় কাজে ঢাকা যাচ্ছিলেন ! আজও  স্বরণ রেখেছেন তাদের কাছে চিরকৃতজ্ঞ মরহুমের পরিবার ।  সবার কাছে বিনীত আবেদন, পরিবারের পক্ষ হতে মরহুমের  জন্য দোয়া করবেন - মহান আল্লাহ যেন মরহুম শেখ অাব্দুল জলিল কে মাফ করে  জান্নাতুল ফেরদাউস নসিব করেন -আমিন।

কয়রায় করোনা ও নারী শিশু নির্যাতন প্রতিরোধে ইউএনও’র মত বিনিময়

 কয়রায় করোনা ও নারী শিশু নির্যাতন  প্রতিরোধে ইউএনও’র মত বিনিময়


কয়রা(খুলনা)প্রতিনিধিঃ করোনায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে যাব মন্ডপে, করোনা মোরা করব জয় এই প্রতিপাদ্যকে সামনে নিয়ে, মহামারি করোনা ভাইরাসের সংক্রমন এড়াতে বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহন করেছে সরকার। সরকারি নির্দেশনা বাস্তবায়নে মাঠ পর্যায়ে কাজ করছে  উপজেলা প্রশাসন। আর এসব নির্দেশনা পালনে প্রথম থেকে জীবনের ঝুকি নিয়ে দিন রাত একপ্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে ছুটে চলেছেন কয়রা উপজেলা নির্বাহী অফিসার অনিমেষ বিশ্বাস ও প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা সাগর হোসেন সৈকত।। প্রতিদিনের ন্যায় গতকাল শনিবার সকাল ৬ টায় র‌্যালী নিয়ে কয়রা সদরের গুরুত্ব পূর্ণ জায়গা প্রদক্ষিন করে তিন রাস্তার মোড়ে ও পুজা মন্ডবে মতবিনিময় করেন। প্রতিদিন অফিস টাইম ছাড়াও সকাল ৬ টায় একদল যুবক নিয়ে সাইক্লিং এর মাধ্যমে এক এক দিন এক গ্রামে, পাড়া, মহল্লায়, এমনকি মোড়ে মোড়ে জনগনকে সচেতন করা, হোম কোয়রেন্টাইন নিশ্চিত করা, দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রনে রাখার পাশাপাশি নিম্ম আয়ের মানুষের খোঁজ খবর এবং ও কোভিড ১৯ এর সেকেন্ড ওয়েভ নিয়ে মত বিনিময় এবং মানুষের মাঝে মাক্স বিতরণ, বিভিন্ন প্রকল্পের কাজ দেখাসহ সচেতনামূলক লিফলেট ও ত্রাণ বিতরণ করছেন কয়রা ইউএনও অনিমেষ বিশ্বাস। মত বিনিময়কালে উপজেলা নির্বাহী অফিসার অনিমেষ বিশ্বাস বলেন, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা অনুযায়ী এই দেশকে করোনা ভাইরাস থেকে, করোনা ভাইরাসের ঝুকি থেকে বাঁচানোর জন্য আমরা সচেতন থাকব। আমরা যারা সরকারি চাকরিজীবী সর্বদাই আপনাদের পাশে আছি। যে কোন প্রয়োজনে আমাদেরকে ডাকুন, আমাদের সহযোগিতা নিন। সেই সাথে আপনার আমাদেরকে সহযোগিতা করুন। এ সময় জনগনকে স¦াস্থ্যবিধি মেনে চলা ও গনমাধ্যমকে এগিয়ে আসার আহবান জানান তিনি।

নড়াইলে অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক হত্যার ঘটনায় আটক ৪ জন

 নড়াইলে অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক হত্যার ঘটনায় আটক ৪ জন



মো: আজিজুর বিশ্বাস স্টাফ রিপোর্টার নড়াইল।। নড়াইল সদরের তুলারামপুর ইউনিয়নের বেনাহাটি গ্রামে অবসরপ্রাপ্ত কলেজ শিক্ষক অরুণ কুমার রায়কে (৭২) গলা কেটে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। নিহত অরুণ রায় মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর খুলনা অঞ্চলের উপ-পরিচালক নিভা রাণী পাঠকের স্বামী। খুলনা থেকে শুক্রবার (২৩ অক্টোবর) সন্ধ্যায় বাড়িতে এসে স্বামীকে ডাকাডাকি করে না পেয়ে ঘরের মধ্যে গিয়ে স্বামীর রক্তাক্ত মরদেহ দেখতে পান স্ত্রী নিভা রাণীসহ পরিবারের সদস্যরা।


শিক্ষা অধিদপ্তরের কর্মকর্তা নিভা রাণী পাঠক জানান, করোনাভাইরাসের প্রকোপ বৃদ্ধির পর থেকে তার স্বামী গ্রামের বাড়ি বেনাহাটিতে একাই থাকতেন। চাকুরির সুবাদে তিনি খুলনায় থাকেন। তবে দুর্গাপূজা উপলক্ষে শুক্রবার সন্ধ্যায় ছেলে, বউমাসহ (ছেলের স্ত্রী) গ্রামের বাড়িতে আসেন তিনি। 


বাড়িতে এসে স্বামীকে অনেক ডাকাডাকির পরও ঘর থেকে কোনো সাড়া না পেয়ে ছাদ দিয়ে ভেতরে ঢোকেন নিভা রাণীর ছেলে। ঘরে গিয়ে বাবার গলাকাটা রক্তাক্ত মরদেহ দেখতে পান তিনি।নিভা রাণী পাঠক বলেন, ঘরে প্রবেশের মূল ফটক তালাবদ্ধ অবস্থায় পেয়েছি। দুর্বৃত্তরা কীভাবে ঘরে প্রবেশ করেছে, তা এই মুহূর্তে বোঝা যাচ্ছে না।তবে ছাদ দিয়ে ঘরে প্রবেশের জায়গা খোলা ছিল। এছাড়া ঘরের পেছনের একটি প্রবেশ পথ ও খোলা দেখা গেছে। ঘর থেকে কোনো কিছু খোয়া গেছে কিনা তা দেখা হচ্ছে।পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, খুলনার বটিয়াঘাটা ডিগ্রি কলেজ থেকে ২০০৮ সালের নভেম্বরে অবসরে যান অরুণ রায়। স্ত্রী নিভা রাণী পাঠকের চাকুরিও শেষ পর্যায়ে। ছেলে প্রকৌশলী এবং মেয়ে চিকিৎসক।নড়াইল সদর থানার ওসি ইলিয়াস হোসেন পিপিএম জানান, কখন কে বা কারা এ হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটিয়েছে, তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। প্রাথমিক অবস্থায় ঘর থেকে তেমন কিছু খোয়া যাওয়ার আলামত পাওয়া যায়নি।হত্যার ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুলিশ বিপুল বিশ্বাস, বিধান রায় ও অরবিন্দু দাস নামের বাড়ির তিন কেয়ারটেকার সহ ৪ জনকে আটক করেছে। এদিকে শনিবার (২৪ অক্টোবর) ময়নাতদন্ত শেষে দুপরে নিহতের বাড়ি বেনাহাটিতে মরদেহ পৌছালে এই শিক্ষককে একনজর দেখতে এলাকার শতশত লোক ভীড় করে।হত্যার ঘটনা তদন্তে শুক্রবার রাত থেকে তদন্তে নেমেছে পিবিআই, সি আইডি ও র‌্যাব।স্বজনেরা জানান, তাঁর স্ত্রী নিভা রানী পাঠক মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তর (মাউশি) খুলনার উপপরিচালক। দুই ছেলে মেয়ের মধ্যে ইন্দ্রোজিৎ রায় রবি কোম্পানির ইঞ্জিনিয়ার এবং মেয়ে ইন্দ্রিরা রায় ডাক্তার। ৩ জ কেয়ারটেকার নিয়ে বাড়িতে তিনি একাই থাকতেন।পুলিশ জানায়, শুক্রবার রাত ৮ টার দিকে ছেলে ইন্দ্রোজিৎ রায় বাড়িতে এসে কলাপসিবল গেটের কলিং বেল চেপে কোনো সাড়া পা’চ্ছিলেন না। এরপর তিনি বাসায় ঢুকে দোতলায় বাবার বসতঘরে গলাকাটা লাশ দেখতে পান। পরে পুলিশে খবর দিলে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে।খুলনার বঠিয়াঘাটা সরকারি কলেজ থেকে ২০০৮ সালে সহকারী অধ্যাপক থেকে অবসর নিয়ে গ্রামের বাড়িতে একাই থাকতেন অরুন রায়।বৃহস্পতিবার রাতে স্ত্রী নিভা পাঠকের সাথে মোবাইলে যোগাযোগের পর তার মোাবাইল বন্ধ পেয়ে শুক্রবার রাত সাড়ে আটটার দিকে ছেলে ও স্ত্রী বাড়িতে এসে কোন সা’ড়াশ’ব্দ পাননি। পরে দোতলায় উঠে বাবার বসতঘরে খাটের পাশে গলাকাটা লাশ দেখতে পান। পরে পুলিশে খবর দিলে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে।

নিহতের স্ত্রী পাঠক মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তর (মাউশি) খুলনার উপপরিচালক নিভা রানী এ ঘটনায় অত্যন্ত ভেঙ্গে পড়েছেন। তিনি বলেন, আমার স্বা’মী একজন নিরীহ লোক, এলাকায় তার কোন শত্রু থাকতে পারে না। কে বা কারা তাকে এভাবে হত্যা করলো তার বিচার তো চাইতেই হবে যেন ভবিষ্যতে এ ধরনের ঘটনা আর না ঘটে।

নড়াইলের অতিঃপুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) শেখ ইমরান জানান, ঘটনাটি একটি আননোন মা’র্ডার। তদন্ত চলছে,শনিবার হত্যা মামলা হবে।

 প্রাথমিকভাবে ধারনা করা হচ্ছে শত্রুতা বশত কেউ তাকে হত্যা করতে পারে। পুলিশ ছাড়াও পুলিশের অন্যন্যা ইউনিট (সিআইডি, পিবিআই) ও নানা ধরনের নমুনা সংগ্রহ করে তদন্ত কাজ করছে।

আশাশুনির গদাইপুরে চেয়ারম্যান ডালিমের ফাঁসির দাবীতে মানববন্ধন

আশাশুনির গদাইপুরে চেয়ারম্যান ডালিমের ফাঁসির দাবীতে মানববন্ধন



আহসান উল্লাহ বাবলু, আশাশুনি সাতক্ষীরা  প্রতিনিধি: আশাশুনি উপজেলার খাজরা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ্ব শাহ নেওয়াজ ডালিমের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি ও ফাঁসির দাবিতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার বেলা ১১ টায় গদাইপুর-তুয়ারডাঙ্গা ব্রীজের উভয় পার ব্যাপী বিশাল মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিলের আয়োজন করে নির্যাতিত পরিবার ও খাজরা ইউনিয়নবাসী। 

ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ নেতা শরবত আলি মোল্যাসহ ৫টি নৃশংস হত্যা মামলার আসামী, টুম্পাসহ অসংখ্য নারী ধর্ষক, সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজ, ভূমিদস্যু, বোমাবাজ, লাঠিয়াল, আ’লীগের অনুপ্রবেশকারীদের আশ্রয়দাতা ও অসংখ্য মামলার আসামী, যুদ্ধাপরাধী, কুখ্যাত রাজাকার মোজাহার সরদারের পুত্র শাহনেওয়াজ ডালিমের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি ও ফাঁসির দাবী সম্বলিত ব্যানার, ফেস্টুন, প্লাকার্ড প্রদর্শন করে মানববন্ধন চলাকালে প্রধান অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন, উপজেলা আ’লীগের সহ-সভাপতি আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী আলহাজ্ব অহিদুল ইসলাম মোল্লা। সাবেক চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আ’লীগ সভাপতি আলহাজ্ব রুহুল কুদ্দুছের সভাপতিত্বে ও যুুবলীগ নেতা জাকিরুল ইসলমের সঞ্চালনায় এসময় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, নিহত শরবতের বড়পুত্র শিমুল, ছোটপুত্র সবুজ, স্ত্রী শেফালী খাতুন, এড. মাসুদুর রহমান প্রিন্স, সাবেক মেম্বার ইছমাইল হোসেন, আবু রায়হান, রামপদ মন্ডল প্রমুখ। বক্তাগণ বলেন, চেয়ারম্যান ডালিমের দুঃশাসন, অত্যাচার, নির্যাতনে মানুষ সর্বশান্ত ও বিপর্যস্ত। প্রকাশ্যে নির্মম হত্যাকান্ড, সন্ত্রাসী বাহিনীর তান্ডব, চঁাদাবাজী, ডাকাতির ছোবলে এলাকা অস্থিতিশীল করে তুলেছে। ইউনিয়ন পরিষদের সকল প্রকার সরকারী সহায়তা দুর্নীতি, অনিয়ম, আত্মসাৎ ও স্বজন প্রীতির কারণে অসহায় মানুষগুলো বঞ্চিত, লাঞ্চিত ও প্রতারিত হয়ে আসছে। এলাকার উন্নয়ন কাজের বরাদ্দ কাজ না করে আত্মসাৎ করায় সকল রাস্তাঘাট, প্রতিষ্ঠান, অসহায় পরিবারগুলো মুখ থুবড়ে পড়ছে। প্রতিবাদ করতে গেলে মিথ্যা মামলা, হামলা ও হয়রানীর শিকারে পরিণত হতে হয়। একের পর এক হত্যা, ধর্ষণ, ঘের লুট, চুরি-ডাকাতি ও সন্ত্রাসী কান্ড করেও মন্ত্রী, এমপি, ডিআইজিসহ উদ্ধতন কর্মকর্তাদের সাথে সুসম্পর্কের কথা বলে তাদের কিছুই হবেনা মর্মে আস্ফালনে এলাকার মানুষ ভীত, সন্ত্রস্ত ও প্রতিবাদ বিমুখ হয়ে পড়তে বাধ্য হচ্ছে। এমনকি কারাগারে আটক হওয়া হত্যা মামলার শুনানী না হলেও ২৭ অক্টোবর তিনি জামিনে বেরিয়ে আসছেন বলে তার সহযোগিতা এলাকায় হুংকার দিয়ে বেড়াচ্ছে দাবী করে বক্তাগণ কিভাবে জামিন হবে, এরদ্বারা আদালতকে জনগণের কাছে প্রশ্নবিদ্ধ করতে অপপ্রয়াস চালাচ্ছেন বলে অভিযোগ করেন। হাজার হাজার নারী পুরুষের অংশ গ্রহনে মানববন্ধন শেষে একটি বিক্ষোভ মিছিল বিভিন্ন সড়ক পরিদর্শন করে।

আসক নর্থবেঙ্গল জোনাল কমিটির পরিচিতি সভা

আসক নর্থবেঙ্গল জোনাল কমিটির পরিচিতি সভা



নন্দীগ্রাম( বগুড়া) প্রতিনিধি:বগুড়ায় আইন সহায়তা কেন্দ্র (আসক) ফাউন্ডেশন নর্থবেঙ্গল জোনাল কমিটির পরিচিতি সভা অনুস্ঠিত হয়েছে। গত ২৩শে অক্টোবর শুক্রবার বিকেল ৪টায় বগুড়ার জলেশ্বরীতলা শহীন খোকন সড়কে (আসক) নর্থবেঙ্গল জোনাল অফিসে এই পরিচিতি সভা অনুস্ঠিত হয়। উক্ত অনুস্ঠানে সংস্থার সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার মোঃ তৌহিদুৎ জামান, সাধারন সম্পাদক শাহরিয়ার কবির সুমন, সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ রিজাউল কারীম, আইন বিষয়ক সম্পাদক এডভোকেট মাহমুদুর রহমান কমিটির সকল সদস্যদের উদ্যেশ্যে  মানবাধিকার প্রতিস্ঠার লক্ষে একযোগে কাজ করার আহ্বান জানান, এসময় উপস্থিত ছিলেন, সিনিয়র সহ-সভাপতি আ স ম ওয়াসিম বিল্লাহ, সহ-সভাপতি আরেফুল রহমান বাদশা, মতিয়ুর রহমান মানিক, জাবেদ মন্ডল, এস এম তুহিন রহমান, মহসিন আলম, যুগ্ম-সাধারন সম্পাদক মাহবুব সাঈদী, এম এ আহসান কবির, সাংগঠনিক সম্পাদক রিজাউল কারীম, তানসেন আলম, জাহিদ হাসান, দপ্তর সম্পাদক আরিফুর রহমান,  অর্থ ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক সৈয়দ শাহ্ নেওয়াজ, প্রচার ও প্রকাশনা বিষয়ক সম্পাদক আমিনুল ইসলাম জুয়েল, উপ-প্রচার ও প্রকাষনা বিষয়ক সম্পাদক হাসানুজ্জামান, তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক আরিফুজ্জামান, মহীলা ও শিশু বিষয়ক সম্পাদিকা মোছাঃ শামীমা আক্তার জলি, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক মোঃ সাখাওয়াৎ হোসেন, শিক্ষা ও সাহিত্য বিষয়ক সম্পাদক সজিব উদ্দিন সরকার, আইন বিষয়ক সম্পাদক এডভোকেট ফাহিম শাহরিয়ার, এডভোকেট মাহমুদুর রহমান, এডভোকেট মামুন, আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক রমিজুল করিম, সাংস্কৃতির বিষয়ক সম্পাদক নিয়াজ মোর্শেদ, সাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক মাকছুদ আলম, যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক হাবিবুর রহমান, শ্রম ও জনশক্তি বিষয়ক সম্পাদক আলমগীর হোসেন, ত্রান ও সমাজ কল্যান বিষয়ক সম্পাদক আল মামুন ইসলাম, বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক সহ কার্যনির্বাহী সদস্যবৃন্দ।

বন্যার্তদের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ

বন্যার্তদের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ




রাজশাহী ব্যুরোঃনাটোর সিংড়ায়চলনবিল অধ্যুষিত  বানভাসি মানুষের মাঝে আমেরিকা প্রবাসী নাটোর জেলাবাসীর সংগঠন নাটোর জেলা এসোসিয়েশন ইউ এস ইনকের পক্ষ থেকে তিন শ পরিবারের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে। শনিবার দুপুরে সিংড়া পৌর শহরের চলনবিল মহিলা ডিগ্রী কলেজ প্রাঙ্গনে ১০০ বানভাসি পরিবারের মাঝে খাদ্য বিতরণ করা হয়। পরে উপজেলার কলম ও চামারি ইউনিয়নের বানভাসি আরোও ২০০ পরিবারের মাঝে খাদ্য সহায়তা বিতরণ করা হয়।

এ সময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ প্রতিদিন ও নিউজ টুয়েন্টিফোরের নাটোর প্রতিনিধি নাসিম উদ্দীন নাসিম,গণমাধ্যমকর্মী মামুন খান,ত্রাণ বিতরণ কার্যক্রমের সম্বন্বয়কারীনাজমুল হুদা রিপন,চঞ্চল মাহমুদ, মোঃ সাইফুজ্জামান,সোহেল রানা মিতুল,আবু রাসেল মিলনমোঃ জায়েদুল ইসলাম ব্রিটল।। খাদ্য সামগ্রীর মধ্যে ছিল চাল,ডাল,তেল,আলু,লবণ।চলনবিলের বানভাসি মানুষের পাশে দাঁড়ানোর জন্য নাটোর জেলাএসোসিয়েশন ইউ এস এ ইনকের সভাপতি এডভোকেট কামরুজ্জামান বাবু এবং সাধারণ সম্পাদক মোস্তাক হামিদ হিরোসহ সকল সদস্যকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন তথ্য যোগাযোগ ও প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী এডভোকেট জুনাইদ আহম্মেদ পলক।

৬ষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে শিক্ষক শ্রীঘরে!

৬ষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে শিক্ষক শ্রীঘরে!


রাজশাহী ব্যুরোঃনাটোরের বড়াইগ্রামে ৬ষ্ঠ শ্রেণীর মাদ্রাসা ছাত্রীকে (১৩) ধর্ষণের অভিযোগে মাওলানা মুফতি ইসমাইল হোসেন (৩৪) নামের এক মাদ্রাসার শিক্ষককে আটক করেছে পুলিশ। শনিবার বিকেলে ওই মাদ্রাসা অভিযান চালালে পালিয়ে যায় পরে দৌড়ে পাশের বিল থেকে তাকে আটক করা হয়। আটককৃত শিক্ষক গুরুদাসপুর উপজেলার বৃ-চাপিলা শাহিবাজার গ্রামে আব্দুল লতিফ প্রামানিকের ছেলে ও কালিকাপুর উম্মাহাতুন মুমিনীন মহিলা মাদ্রাসার শিক্ষক।অভিযোগ সুত্রে জানাযায়, গত জানুয়ারী মাসে কালিকাপুর উম্মাহাতুন মুমিনীন মহিলা মাদ্রাসার ৬ষ্ঠ শ্রেনীতে ভর্তি করে মেয়েটির মা। ভর্তি কিছুদিন পরেই করোনা পরিস্থিতির কারণে বন্ধ হয়ে যায় মাদ্রাসা। তখন মেয়েটি বাড়িতে অবস্থান করে। বাড়িতে থাকা অবস্থায় তার আচরণ অসভাবিক মনে হয় মা ও বোনের কাছে। চুপচাপ থাকে, একা একা কান্নাকাটি করে। মাদ্রাসা যেতে বললে অস্বীকার করে মেয়েটি।এমতাবস্থায় মেয়েটি মা-বোন তার পাশে দাড়ায়। সবকিছু খুলে বলতে বলে। তখন মেয়েটি যায় করোনার ছুটির আগে হাত ধৌয়ার ব্যাসিন পরিস্কার করার সময় শিক্ষক তাকে হাতে ইশারায় ডেকে নেয়। এবং দরজা বন্ধ করে তাকে জোড়পুর্বক ধর্ষণ করে। মেয়েটির মা থানায় লিখিত অভিযোগ করলে অভিযুক্ত শিক্ষককে আটক করে পুলিশ।বনপাড়া পুলিশ তদন্ত্র কেন্দ্রের ইনচার্জ পরিদর্শক তৌহিদুল ইসলাম জানান, মেয়েটি মায়ের অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে মাদ্রাসার শিক্ষক ইসমাইল হোসেনকে আটক করা হয়েছে।বড়াইগ্রাম থানার পরিদর্শক আনোয়ারুল হক বলেন, অভিযুক্ত শিক্ষকের বিরুদ্ধে ধর্ষণে অভিযোগে আটক করা হয়েছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। মামলা প্রক্রিয়া চলমান রয়েছে।

আশাশুনিতে আম্পানে ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করেন জার্মানিরডেপুটি কমিশনার

 আশাশুনিতে আম্পানে ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করেন জার্মানিরডেপুটি কমিশনার

  

আহসান উল্লাহ বাবলু আশাশুনি সাতক্ষীরা প্রতিনিধিঃ  ঘূর্ণিঝড় আম্ফানের ক্ষতিগ্রস্ত আশাশুনি উপজেলার শ্রীউলা ও প্রতাপনগর ইউনিয়নের ভাঙ্গন কবলিত এলাকার পানিবন্দি মানুষের মাঝে জার্মান এ্যাম্বেসির অর্থায়নে ও মিনা ফাউন্ডেশনের সহযোগিতায় ত্রাণ বিতরণ করেন জার্মানের ডেপুটি হাইকমিশনার কনস্টানজা ঝিরিন্জার। শনিবার সকালে শ্রীউলা ইউনিয়নের তিন হাজার ও প্রতাপ নগর ইউনিয়নের কোলা ও হিজলিয়া গ্রামের তিন শত পানিবন্দি পরিবারের মাঝে ২৫ কেজি চাল,২ কেজি ডাল, সাবান মাক্স ও পানি বিশুদ্ধকরণ ট্যাবলেট বিতরণ করা হয়। ত্রাণ বিতরণ কালে ডেপুটি হাইকমিশনার বলেন, ঘূর্ণিঝড় আম্ফানে বাঁধ ভেঙে এই অঞ্চলের মানুষ দীর্ঘদিন যাবৎ পানিবন্দী অবস্থায় মানবেতর জীবনযাপন করছে,এটা অত্যন্ত কষ্টকর ও বেদনাদায়ক দৃশ্য। বাংলাদেশের যেকোনো দুর্যোগকালীন সময়ে জার্মান সরকার সার্বিক সহযোগিতা করে থাকে। এজন্য আমরা খাদ্য সহায়তা দেয়ার জন্য আপনাদের মাঝে এসেছি।ভবিষ্যতে এ অঞ্চলের মানুষ যাহাতে আরও বেশি আর্থিক সহায়তা পায় তার জন্য জার্মান সরকারের পক্ষ থেকে আমি সার্বিকভাবে চেষ্টা চালিয়ে যাব। এসময় উপস্থিত ছিলেন সার্কেল(এএসপি) শেখ ইয়াসিন আলি, আশাশুনি উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এ বি এম মোস্তাকিম, সহকারী কমিশনার ভূমি শাহিন সুলতানা, থানা অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ গোলাম কবির, শ্রীউলা ইউপি চেয়ারম্যান আবু হেনা সাকিল, উপজেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক জগদিস সানা প্রমুখ।

একতা পরিবার এর উদ্যোগে মাদ্রাসায় নির্মাণ সামগ্রী ও গাছের চারা বিতরণ

  একতা পরিবার এর উদ্যোগে মাদ্রাসায় নির্মাণ সামগ্রী ও গাছের চারা বিতরণ

এস.এম অলিউল্লাহ ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধিব্রাহ্মণবাড়ীয়া জেলার এক ঝাঁক মানবতাবাদী তরুণের সম্বণয়ে গড়া স্বেচ্ছাসেবী সামাজিক সংগঠন-ব্রাহ্মণবাড়িয়া একতা পরিবার; উক্ত সংগঠনের উদ্যোগে আজ ২৩শে অক্টোবর শুক্রবার ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলার শালগাঁও ইসলামীয়া তাজবীদুল কোরআন মহিউস সুন্নাহ হাফিজিয়া মাদ্রাসায়- মাদ্রাসার প্রিন্সিপাল মুফতী উবাইদুল্লা কাশেমীর সভাপতিত্বে ও মাদক মুক্ত ব্রাহ্মণবাড়িয়া চাই’র সহ সভাপতি মাওঃ মোঃ ফরহাদ হোসাইনের সঞ্চালনায়- নির্মাণ সামগ্রী ও আসবাব পত্র বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন- বাংলাদেশ জেলা পরিষদ মেম্বারস এসোসিয়েশন এর সভাপতি- আলহাজ্ব মোঃ বাবুল মিয়া,তিনি এ সময় তার বক্তব্যে ব্রাহ্মণবাড়িয়া একতা পরিবার এর সামাজিক ও মানবিক কাজের ভূয়সী প্রশংসা করেন এবং আগামীতে এমন সব সংগঠনকে সব ধরনের সহায়তার আশ্বাস দেন। 

বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন-জেলা আওয়ামীলীগ এর সদস্য-আলহাজ্ব মোঃ শাহ আলম, শালগাঁও কালিসীমা ঐক্য পরিষদ এর যুগ্ম সম্পাদক-মোঃ শফিকুল ইসলাম, 

বীর মুক্তিযোদ্ধা সুবেদার ইসমাঈল মিয়া,বীর মুক্তিযোদ্ধা-মোঃ শামছুল হক শওকত,মাদক মুক্ত ব্রাহ্মণবাড়িয়া চাই’র সভাপতি-মাহফুজুর রহমান পুষ্প,কোষাধ্যক্ষ-জুনাঈদ মুহাম্মদ-ও আপ্যায়ন সম্পাদক-শহিদুল ইসলাম কাজল,অনুষ্টানে-শালগাঁও ইসলামীয়া তাজবীদুল কোরআন মহিউস সুন্নাহ হাফিজিয়া মাদ্রাসার প্রিন্সিপাল মুফতী উবাইদুল্লা কাশেমী ও বিজয়নগর উপজেলার খাদরাইল মিফতাহুল উলুম মাদ্রাসার প্রতিনিধির হাতে ৫ হাজার ইট একটি টিউবওয়েল ৩ টি সিলিংফ্যান ও মাদ্রাসার জন্য বেঞ্চ, টেবিল সহ অন্যান্য আসবাস পত্রের ক্যাশ মেমো তুলে দেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি- বাংলাদেশ জেলা পরিষদ মেম্বারস এসোসিয়েশন এর সভাপতি- আলহাজ্ব মোঃ বাবুল মিয়া, পরে শতাধিক ছাত্রের মাঝে বিভিন্ন প্রজাতির ফলজ বনজ ও ঔষধি গাছের চারা বিতরণ করা হয় ।  

আজকের অনুদানে অর্থ সহায়তা প্রদান করেন সংগঠনের উপদেষ্ঠা-মোঃ ফারুক মিয়া, সংগঠনের চেয়ারম্যান- মোঃ দ্বীন ইসলাম,সভাপতি-মোঃ সোহরাব উজ্জল, সিনিয়র সহ সভাপতি-মোঃ রাসেল খান, সহ সভাপতি মোঃ সুজন মিয়া, সাধারণ সম্পাদক- মোঃ রমজান আলী, সহ সাধারণ সম্পাদক- মোঃ সোহেল রানা, সাংগঠনিক সম্পাদক-মোঃ আবু সাঈদ, প্রচার সম্পাদক- মোঃ রাসেল মিয়া,স প্রচার সম্পাদক- মোঃ মজিবুর রহমান, দপ্তর সম্পাদক এম এইচ মোঃ সুজন সহ অন্যান্য সদস্যবৃন্দ । উক্ত অনুষ্ঠানে সার্বিক সহযোগিতার ছিলেন মোঃ হাদিস মিয়া ।

ব্যারিস্টার রফিকের আশা পূরণেই তিনি শান্তি পাবেন -এনডিবি

ব্যারিস্টার রফিকের আশা পূরণেই তিনি শান্তি পাবেন -এনডিবি

প্রেস বিজ্ঞপ্তিঃ ব্যারিস্টার রফিক-উল হক-এর মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন নতুনধারা বাংলাদেশ এনডিবির চেয়ারম্যান মোমিন মেহেদী, প্রেসিডিয়াম মেম্বার এ্যাড. হাসিনা বেগম, সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান শান্তা ফারজানা, মহাসচিব নিপুন মিস্ত্রী প্রমুখ। ধারার মিডিয়া সেল প্রেরিত শোক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়- আজীবন ব্যারিস্টার রফিক-উল হক দেশের ও মানুষের মঙ্গলের জন্য নিবেদিত ছিলেন। এই দুঃসময়ে তাঁর চলে যাওয়া আমাদের দেশকে আরো ক্ষতিগ্রস্থ করে দিলো। তিনি নিবেদিত ছিলেন সমৃদ্ধ দেশ গড়ার জন্য। যে দেশে সন্ত্রাস-দুর্নীতি-ধর্মব্যবসা-ধর্ষণ-খুন থাকবে না; সেই আশা পূরণ হওয়ার আগেই তিনি চলে গেলেন। ব্যারিস্টার রফিকের আশা পূরণেই তিনি শান্তি পাবেন, আর তাই এখন তাঁর বিদেহী আত্মার প্রতি শান্তি কামনায় দোয়া-প্রার্থনার পাশাপাশি সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে অন্যায়-অপরাধ-দুর্নীতি থামাতে কাজ করতে হবে। 


দুপুরে মরহুমের জানাজায় অংশ নেন নতুনধারার রাজনীতিকগণ এবং শ্রদ্ধা জানান- দোয়া করেন

সাতক্ষীরায় খাদ্য অধিকার আইন প্রণয়নের দাবিতে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত

 সাতক্ষীরায় খাদ্য অধিকার আইন প্রণয়নের দাবিতে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত



আজহারুল ইসলাম সাদী, স্টাফ রিপোর্টারঃসাতক্ষীরায় খাদ্য অধিকার আইন প্রণয়নের দাবিতে মাসব্যাপি খাদ্য অধিকার প্রচারাভিযান এর অংশ হিসাবে সাতক্ষীরায় আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার (২৪ অক্টোবর) সকাল ১০টায় খাদ্য নিরাপত্তা নেটওয়ার্ক (খানি) বাংলাদেশ ও প্রগতিসহ স্থানীয় উন্নয়ন সংস্থাসমূহের আয়োজনে, সাতক্ষীরা কেন্দ্রীয় পাবলিক লাইব্রেরি মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় অধ্যক্ষ আব্দুল হামিদের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সাতক্ষীরা (০২) আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা মীর মোস্তাক আহমেদ রবি। 

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সাতক্ষীরা কেন্দ্রীয় পাবলিক লাইব্রেরির সাধারণ সম্পাদক মো. কামরুজ্জামান রাসেল, ‘স্বদেশ’র নির্বাহী পরিচালক মাধব দত্ত, সিনিয়র উপজেলা মৎস্য অফিসার মো. বদরুজ্জামানসহসভায় আরো উপস্থিত ছিলেন, স্থানীয় বিভিন্ন এনজিও ও সামাজিক সংগঠনের সদস্যবৃন্দ।প্রধান অতিথির বক্তব্যে এমপি রবি বলেন, খাদ্য একটি মৌলিক অধিকার। বাংলাদেশে মোটামোটিভাবে খাদ্য অধিকার নিশ্চিত আছে। দেশের কোন মানুষ না খেয়ে থাকেনা। এক লক্ষ সাতচল্লিশ হাজার পাঁচশত সত্তর বর্গ কিলোমিটার ভূখেন্ড আমরা প্রায় আঠারো কোটি মানুষ বসবাস। তিনি আরও বলেন, সাতক্ষীরার মাটি অত্যন্ত উর্বর। যেকোন জায়গায় যেকোন বীজ ফেলে দিলে তা উৎপাদন হয়। সাতক্ষীরা কোন দিক থেকে পিছিয়ে নেই। ধান, মাছ, মাংস উৎপাদনে আমরা স্বয়ংসম্পূর্ণ।সমগ্র অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন ‘প্রগতি’র প্রধান নির্বাহী ও দৈনিক দক্ষিণের মশাল সম্পাদক অধ্যক্ষ আশেক-ই-এলাহী।

বাঁকড়ার ঋষিপাড়ায় সড়কটি নিজ অর্থায়নে সংস্কার করে দিলেন চেয়ারম্যান নিছার আলী

বাঁকড়ার ঋষিপাড়ায় সড়কটি নিজ অর্থায়নে সংস্কার করে দিলেন চেয়ারম্যান নিছার আলী

আব্দুল জব্বার, স্টাফ রিপোর্টার।।যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলার ১১নং বাঁকড়া ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডে বাঁকড়া টু পাটুলিয়া প্রধান সড়ক, বাঁকড়া ঋষিপাড়ায় সড়কে পানি জমে থাকায় সড়কটি ভেঙে দুর্ঘটনার মুখে পড়ছে পথচারীরা। সড়কের পানি বের হওয়ার কোনো জায়গা না থাকায়, সড়কটি ভেঙ্গে গিয়েছে। 

এলাকা বাসীর অকল আবেদনে বাঁকড়া মানবিক ইউপি চেয়ারম্যান নিছার আলী, নিজের অর্থ থেকে এলাকা বাসীর অকল আবেদনে এই সড়কটি সংস্কার করেন।এলাকা বাসী ও পথচারী থেকে যানাযায়, এই সড়কটি বাঁকড়া টু ঝিকরগাছা, বাগআঁচড়া, মণিরামপুর, কলারোয়া, একমাত্র সড়ক। বৃষ্টি এলে এই রাস্তা চরম দুর্ভোগে পড়তে হয়।আজ আমরা এলাকা বাসী খুবই আনন্দিত, যে এমন মানবিক চেয়ারম্যান আছে আমাদের বাঁকড়াতে।

এই সময় উপস্থিত ছিলেন, বাঁকড়া ইউপি চেয়ারম্যান নিছার আলী, ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সহসভাপতি সামাদ দপ্তরী, ইউনিয়ন যুবলীগ সভাপতি আবুল কালাম আজাদ দপ্তরী, বাঁকড়া জে কে মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সভাপতি হাফিজুর রহমান, বীর মুক্তিযোদ্ধা রবিউল ইসলাম মালী,১নং ওয়ার্ড যুবলীগ সভাপতি ও আসন্ন আগামী ইউপি নির্বাচনের মেম্বার পদপ্রার্থী আব্দুল আহাদ, সমাজসেবক আজিবার, ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ নেতা মোশারফ হোসেন, ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ নেতা রব্বানী, আওয়ামী যুবলীগ,  ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

আশাশুনির তুয়ারডাঙ্গা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এসএমসির সভা

আশাশুনির তুয়ারডাঙ্গা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এসএমসির সভা




আহসান উল্লাহ বাবলু, আশা শুনি, সাতক্ষীরা      প্রতিনিধিঃআশাশুনির তুয়ারডাঙ্গা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের এসএমসি'র সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার সকালে তুয়ারডাঙ্গা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। এসএমসি'র দাতা সদস্য মুক্তিযোদ্ধা এ কে এম শামসুল হুদার সভাপতিত্বে ও বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ ইদ্রিস আলীর সঞ্চালনায় সভায় উপস্থিত ছিলেন এসএমসি সদস্য ইউপি সদস্য মোঃ আনারুল ইসলাম, ফিরোজ আহমেদ, মাহমুদুল হাসান, রহিমা পারভীন, সাইফুল ইসলাম, পারভীন,আজমল হোসেন,দীপঙ্কর কুমার বৈদ্য, শবনম ও দরগাহপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক দরবেশ ই রসুল।সভায় সর্বসম্মতিক্রমে এই সিদ্ধান্তে উপনীত হয় যে, আগামী ৩০/১০/২০ ইং তারিখে অত্র বিদ্যালয়ের এসএমসির সভাপতি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

নওগাঁর আত্রাইয়ে নব নির্বাচিত এমপি’র পূজা মন্ডপ পরিদর্শন

নওগাঁর আত্রাইয়ে নব নির্বাচিত এমপি’র পূজা মন্ডপ পরিদর্শন


 মোঃ ফিরোজ হোসাইন,রাজশাহী ব্যুরোঃ নওগাঁর আত্রাই উপজেলায় বিপুল উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে হিন্দু সম্প্রদায়ের শারদীয় দূর্গোৎসব অনুষ্ঠিত হচ্ছে।  আজ শনিবার ২৪ অক্টোবর সকাল থেকে পূজা মন্ডপ পরিদর্শন করেন নওগাঁ-৬ আত্রাই রাণীনগর আসনের নব নির্বাচিত এমপি আলহাজ্ব মোঃ আনোয়ার হোসেন হেলাল। । এসময় তার সঙ্গে ছিলেন আত্রাই উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি শ্রী নিপেন্দ্রনাথ দও দুলাল, আত্রাই উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি আলহাজ্ব মো.এবাদুর রহমান প্রামাণিক,উপজেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক চৌধুরী গোলাম মোস্তফা বাদল ও পূজা উদযাপন কমিটির নেতৃবৃন্দ সহ উপজেলা ও ইউনিয়ন   লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।


ষষ্ঠী পুজার মধ্য দিয়ে সামাজিক দুরত্ব মেনে আত্রাই উপজেলা ৪৭ টি পূজা মন্ডপে শারদীয় দুর্গোৎসব শুরু হয়েছে। প্রতি বছর ব্যাপক পরিসরে আয়োজন থাকলেও করোনার প্রভাবে এবার আয়োজন অনেকেটাই সীমিত তবুও আনন্দের কমতি নেই হিন্দু ধর্মালম্বীদের মাঝে।


শনিবার (২৪ অক্টোবর) সন্ধ্যায় অষ্টমীর দিনে করোনার মুক্তির জন্য বিশেষ প্রার্থনা করা হয়। প্রতিদিন সন্ধ্যায় আরতির পর পূজা মন্ডপগুলো বন্ধ থাকবে। এ বিষয়ে আত্রাই পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি বলেন, সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে কোনরুপ বাঁধা বিপত্তি ছাড়াই শারদী দুর্গোৎসব পালন হচ্ছে ।


নব নির্বাচিত এমপি আলহাজ্ব মোঃ আনোয়ার হোসেন হেলাল বলেন,বর্তমান দেশে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ চলছে। আমরা যে যার অবস্থানে থেকে ভালো ও সুস্থ থাকার চেষ্টা করি।সকল নিয়ম মেনে অনুষ্ঠান সাজায়,পূঁজা মন্ডপ গুলোতে মাস্ক ব্যবহার, শোভাযাত্রা না করা,সহ সাবান দিয়ে হাত ধোয়া ও স্যানিটাইজেশনের ব্যবস্থা রেখে যেন পূজা অনুষ্ঠান পালন করা হয়।পূজা মণ্ডপগুলোর নিরাপত্তায় আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী মাঠে তৎপর আছে বলে ও তিনি জানান৷

টাঙ্গাইলের মধুপুরে ফ্রি-ব্লাড গ্রুপিং ক্যাম্পেইন অনুষ্ঠিত

 টাঙ্গাইলের মধুপুরে  ফ্রি-ব্লাড গ্রুপিং ক্যাম্পেইন অনুষ্ঠিত


মো: আ: হামিদ মধুপুর টাঙ্গাইল প্রতিনিধিঃসবার আগে সমাজ সেবা- এই উপপাদ্যকে সামনে রেখেই টাঙ্গাইলের মধুপুর উপজেলার ফাজিলপুর নামক স্থানে- বিশিষ্ট সমাজ সেবক যুব সমাজের অহংকার অবঃ লেঃ কর্ণেল মোঃ আসাদুল ইসলাম আজাদ যুব সমাজকে মাদকের মরণ ছোবল থেকে রক্ষা করতে এলাকার যুবক ছেলেদের জন্য স্পোর্টিং ক্লাব ও ১৫০ শতাংশ জমিতে একটি মিনি স্টেডিয়াম নিজ অর্থায়ণে নির্মাণ করেছেন।এরই ধারাবাহিকতায়  শুক্রবার ২৩শে অক্টোবর সারাদিন ব্যাপি আজাদ স্পোর্টিং ক্লাব, স্টুডেন্ট কল্যাণ তহবিল ও ব্লাড ফাউন্ডেশন মধুপুর এর যৌথ উদোগে আজাদ স্পোটিং ক্লাবের খেলার মাঠে এ ফ্রি ব্লাড গ্রুপিং ক্যাম্পেইন অনুষ্ঠিত হয়। এসময় আজাদ স্পোর্টিং ক্লাবের ২৫০জন সদস্য এবং এলাকার ইচ্ছুক ৩২ জন সহ সর্বমোট ২৮২ জন যুবক ফ্রি ব্লাড গ্রুপ ক্যাম্পেইনে অংশ নেয়। এখান থেকে যে কেউ বিনা অর্থে প্রয়োজনীয় গ্রুপের রক্ত সংগ্রহ করতে পারবেন বলে জানান আয়োজকগন। বিকালে নব নির্মিত স্টেডিয়ামে এক প্রীতি ফুটবল খেলার আয়োজন করা হয়। শত শত  দর্শক বৃষ্টিতে ভিজেই এই খেলা উপভোগ করেন। খেলা শেষে খেলোয়াড়দেরকে জার্সি এবং প্রায় ৩০০ স্বেচ্ছা সেবকের মাঝে ট্রি শার্ট বিতরণ করেন আজাদ স্পোর্টিং ক্লাবের প্রতিষ্টাতা অবঃ লেঃ কর্ণেল মোঃ আসাদুল ইসলাম আজাদ।

নাগরপুরে দুর্গোৎসব পূজা মন্ডপে ১২ হাজার মাস্ক বিতরণ

নাগরপুরে দুর্গোৎসব পূজা মন্ডপে ১২ হাজার মাস্ক বিতরণ


হাসান সাদী,নাগরপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধিঃ স্বাস্থ্যবিধি মেনে দুর্গাপূজা পালনের জন্য টাঙ্গাইলের নাগরপুরে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে উপজেলার প্রতিটি পূজা মন্ডপে মাস্ক বিতরণ করা হয়েছে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সিফাত-ই-জাহান শনিবার সকালে ১২৩টি পূজামণ্ডপের জন্য ১২ হাজার মাস্ক উপজেলা পূজা উদযাপন কমিটির হাতে তুলে দেন। পরে তিনি বিভিন্ন পূজামন্ডপ পরিদর্শন করেন।

সনাতন ধর্মমতে এ বারে মা আসছেন দোলায় চড়ে। এতে দুর্যোগ বাড়ার আশঙ্কা রয়েছে। ফিরবেন হাতিতে। তাতে সুখশান্তি ফিরবে। ষষ্ঠীপূজার মধ্য দিয়ে দুর্গোৎসবের মূল আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়েছে বৃহস্পতিবার থেকে। করোনার কারণে সাত্ত্বিক পূজার মধ্যেই দুর্গাপূজা সীমাবদ্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছে বাংলাদেশ জাতীয় পুজা উদযাপন কমিটি। সন্ধ্যারতির পর মন্দির বন্ধ করার বার্তা দেওয়া হয়েছে সারা দেশে। সবটাই করা হচ্ছে করোনার প্রাদুর্ভাব থেকে নিজেদের রক্ষার জন্য। প্রশাসনের পক্ষ থেকেও নেয়া হয়েছে নানাবিধ পদক্ষেপ।

মাস্ক বিতরণকালে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সিফাত-ই-জাহান বলেন, “ধর্ম যার যার, উৎসব সবার। বাংলাদেশের মানুষ এই মন্ত্রেই দীক্ষিত। আমরা এতে বিশ্বাস করি। তাই বাংলাদেশে শারদীয় দুর্গোৎসব পালিত হয় সর্বজনীন উৎসব হিসেবে। এই উৎসবে হিন্দু, মুসলিমসহ সকল ধর্মের মানুষরাই যোগদান করে থাকেন। তিনি স্বাস্থ্যবিধি মেনে সবাইকে পুজোয় যোগ দিতে অনুরোধ জানান। তিনি এ-ও জানালেন, করোনা সত্ত্বেও অনেক ভক্ত মন্দিরে আসবেন। তাঁরা যাতে মাস্ক পরে দেবী দূর্গাকে দর্শন করতে পারেন, তার জন্য প্রশাসনের তরফ থেকে এ মাস্ক বিতরণ করা হচ্ছে। এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা আবু বকর সিদ্দিকী, ইউআরসি ইন্সট্রাক্টর হারুন অর রশিদ, উপজেলা পূজা উদযাপন কমিটির আহবায়ক লক্ষ্মীকান্ত সাহা, যুগ্ম আহবায়ক শম্ভুনাথ সাহা, নীরেন্দ্র নাথ পোদ্দার প্রমূখ।

সংসারের হাল ধরতে ঝাল মুড়ির টিন হাতে সজীব

সংসারের হাল ধরতে ঝাল মুড়ির টিন হাতে সজীব


ইকরামুল করিম সৈকতঃ পিতৃ হারা এক সন্তান, জীবন চালাতে কতটা অসহায়! যে বয়সে হাজারো ছেলের মত হেসে খেলে আনন্দ করে স্কুলে যাবে সে সময়ে সংসারের হাল ধরতে ঝাল মুড়ির টিন হাতে নিয়ে এখন রাজপথে মুড়িওয়ালা। জীবন যুদ্ধে হার না মানা এক তরুন যোদ্ধা। ছেলেটার নাম মোঃ ইয়াছিন আরাফাত সজীব (১১) মা মোছা: নূর-নাহার, গ্রাম: মোবারকপুর ঝিকরগাছা যশোর। সংসারে ৩ বছরের ছোট্ট একটা বোন আছে।৫ম শ্রেণি অবধি পড়ালেখার পর মা-বোনের মুখের দিকে তাকিয়ে নেমেছে অর্থ উপার্জনে ।তার সাথে কথা মোঃ জাহিদ হাসান রুবেল, সাধারণ সম্পাদক, মুক্তিযুদ্ধ প্রজন্ম কমান্ড, যবিপ্রবি শাখা। তিনি জানান ওর সাথে কথা বলে আমরা মুগ্ধ,  বুঝলাম জীবনের চরম বাস্তবতা ওকে অনেক কিছু শিখিয়েছে। যে বয়সে ছেলেটার হাসি, অানন্দ অার ফুরফুরে মন নিয়ে উড়ে বেড়ানোর কথা সেই বয়সে ছেলেটা জীবনের সাথে সংগ্রাম করে চলেছে ।তবুও কারো কাছে মাথা নত করিনি।এভাবেই দারিদ্রতার কাছে হেরে যায় এরকম হাজারো সজীবের জীবন।  ছেলেটাকে বলে এসেছি "যেকোন কাজকেই অামি আমরা সকলেই সম্মান করি।কিন্তু তোর তো এখন কাজের বয়স না। সমাজের বিত্তবান মানুষের প্রতি বিনীত আবেদন জানাবো ছেলেটার খোঁজ খবর নিবেন, সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেবেন।ওর মা বড় অসহায়,  ছোট্ট অবুঝ ছেলে মেয়ে নিয়ে লোকের জমিতে ঘর করে ভাড়া থাকে। দেখার কেউ নেই।অবুঝ ছেলে শিশুর উপর নির্ভর করে ৩ জনের সংসার। 

মোংলায় কুমারী পূজার মধ্যদিয়ে মহাধুমধামে মহাঅষ্টমী উদযাপিত

মোংলায় কুমারী পূজার মধ্যদিয়ে মহাধুমধামে মহাঅষ্টমী উদযাপিত



মোঃএরশাদ হোসেন রনি, মোংলাঃকরোনার প্রাদুর্ভাব ও দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ার মধ্যদিয়ে জাকজমকভাবেই উদযাপিত হচ্ছে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা। এবার মোংলার শেহলাবুনিয়ার বটতলা কেন্দ্রীয় মন্দির ও বঙ্গবন্ধু সড়কে সোনাপট্টির মন্দিরসহ ৩৩টি মন্দির-মন্ডপে উদযাপন হচ্ছে দুর্গাৎসব। করোনা বিধি নিষেধ মেনেই পূজা ও উৎসব পালন করছে পূজারী এবং ভক্তরা। পূজার প্রথম দিন ষষ্টী ও দ্বিতীয় দিন সপ্তমীতে প্রচন্ড বৃষ্টিপাত হওয়ায় উৎসবে কিছুটা ভাটা পড়ে। তবে সপ্তমীর বিকেল থেকে পূজা ও মন্দিরস্থলে ভিড় বাড়তে থাকে। ধর্মীয় নানা অনুষ্ঠান ও উৎসবের মধ্যদিয়ে পালিত হচ্ছে হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের এ বড় উৎসব। 

আজ কুমারী পূজা, অন্জলী ও চন্ডি পাঠসহ নানা আনুষ্ঠানিকতার মধ্যদিয়ে মহাঅষ্টমী উদযাপন হচ্ছে মন্দির-মন্ডপগুলোতে। 

এবারও মোংলায় সবচেয়ে জাকজমকভাবে উদযাপন হচ্ছে সোনাপট্টির আয়োজনের দুর্গাৎসবটি। চোখের পড়ার মত আকর্ষণীয় প্রতিমা ও সাজ এবং আলোকসজ্জা সকলের নজর কাড়ছে। তাই সবচেয়ে ভিড়ও এ পূজাস্থল জুড়ে। করোনা ও দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়া উপেক্ষা করে ধর্মীয় এ অনুষ্ঠানে সামিল হতে দেখা গেছে সকল বয়সের মানুষকেই। 

নওগাঁর বন্যার পানি কমাতে ছিপ বড়শি দিয়ে মাছ ধরার ধুম

নওগাঁর বন্যার পানি কমাতে ছিপ বড়শি দিয়ে মাছ ধরার ধুম

মোঃ ফিরোজ হোসাইন,রাজশাহী ব্যুরোঃসকাল থেকে সন্ধ্যা। তীর্থের কাকের মতো অপেক্ষা। দিনশেষে প্রাপ্তির খাতায় কখনো থেকে যায় শূন্যই। আছে অতৃপ্তি-হতাশা, তবুও নিরাশ নন কেউই। পূর্ণ উদ্যমে আবারো ধ্যান। ছিপ আর বড়শি দিয়ে মাছ শিকারিদের গল্প এমনই।উত্তরবঙ্গের মৎস্য ভান্ডার হিসেবে পরিচিত নওগাঁর আত্রাই উপজেলা। এই উপজেলার নদী-নালা, খাল-বিল ও ফসলের মাঠে থৈ থৈ করছে অথৈয় পানি। যেদিকে চোখ যায় শুধু পানি আর পানি। কিন্তু এবার ৩বারের বন্যায় আত্রাই উপজেলার ৩ শতাধিক পুকুর থেকে মাছ ভেসে গেছে।

সাম্প্রতিক ভারি বর্ষণ ও আত্রাই নদীর বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধের ভাঙন এবং উজান থেকে নেমে আসা ঢলের পানিতে প্রতিটি মাঠ প্লাবিত হয়ে গেছে। এসব খাল-বিলের পানি কমাই এখন মাছ শিকারে মুখরিত হয়ে উঠেছে এলাকার মৎস্যজীবী  (জেলে) পরিবারের কর্তারা সহ স্ব স্ব এলাকার তরুণ, যুবক, প্রবীণ ও স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীরাও।তারা ছিপ বড়শি সহ বিভিন্ন পদ্ধতিতে দিন রাত মাছ শিকার করছেন। আর এ মাছ বিক্রি করে স্বাচ্ছন্দে চলছে তাদের পরিবার আর কেউবা করোনায় স্কুল কলেজ বন্ধ থাকায় এইভাবে পার করছেন সময়।সরেজমিনে বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা যায়, করোনায় মানুষের কর্মসংস্থান ও আয়ের উৎস কমে যাওয়ার কারণে অধিকাংশ মানুষ বর্ষার পানিতে মাছ শিকারে নেমেছেন।

এ বিষয়ে উপজেলার হাটকালুপাড়া ইউপির দ্বীপচাঁদপুর গ্রামের মোঃ আমিনুল ইসলাম  বলেন, মহামারি করোনা ভাইরাসের কারণে কাজ কর্ম বন্ধ থাকায় আপাতত বড়শি দিয়ে মাছ শিকার করে দিন কেটে যাচ্ছে। বন্যার কারণে ডোবায় নালায় বিভিন্ন মাছ ছড়িয়ে পড়েছে। মাছ ধরার আনন্দও অন্য রকম।এ ব্যাপারে উপজেলার কালিকাপুর ইউনিয়নের সুমন হোসেন বলেন, বন্যার পানি বিভিন্ন জায়গায় প্রবেশ করার কারণে এখন সব জায়গায় কম বেশি মাছ শিকার করা যাচ্ছে৷

কোটচাঁদপুরে শারদীয় দূর্গাপূজা উদযাপন উপলক্ষে শুভেচ্ছা বিনিময়

কোটচাঁদপুরে শারদীয় দূর্গাপূজা উদযাপন উপলক্ষে শুভেচ্ছা বিনিময়


খোন্দকার আব্দুল্লাহ বাশার,খুলনা ব্যুরো প্রধানঃশনিবার সকাল ১১টা ৩০মিনিটে ঝিনাইদহের কোটচাঁদপুরে শারদীয় দূর্গাপূজা উদযাপন উপলক্ষে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সাথে শুভেচ্ছা বিনিময় অনুষ্ঠিত হয়েছে।অনুষ্ঠানটি আয়োজন করেন বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ,কোটচাঁদপুর উপজেলা শাখা।পূজা উদযাপন পরিষদ,কোটচাঁদপুর উপজেলা শাখার সভাপতি বাবু নিমাই চন্দ্র দে'র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ঝিনাইদহ-৩(মহেশপুর,কোটচাঁদপুর)আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য এ্যাড.শফিকুল আজম খাঁন চঞ্চল।বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি শরিফুন্নেছা মিকি,উপজেলা নির্বাহী অফিসার আসাদুজ্জামান রিপন, উপজেলা আওয়ামিলীগর সিনিয়র সহ সভাপতি মোঃ নুরুল ইসলাম খান বাবলু, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক শাহাজান আলী,পৌর মেয়র জাহিদুল ইসলাম জাহিদ, কোটচাঁদপুর মডেল থানার  অফিসার ইনচার্জ মাহবুবুল আলম, পৌর আওয়ামীলীগের আহ্বায়ক মোঃ ফারজেল হোসেন মন্ডল উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান রিয়াজ হোসেন ফারুক।  অনুষ্ঠানটি সঞ্চলনায় ছিলেন বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ,কোটচাঁদপুর উপজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক বাবু রবিন্দ্রনাথ রায়।এসময়  স্থানীয় সাংবাদিকবৃন্দ সহ সকল স্তরের নেতা কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

শীঘ্রই শুরু হচ্ছে বাঙালী নদীর খনন প্রকল্পের কাজ

শীঘ্রই শুরু হচ্ছে বাঙালী নদীর খনন প্রকল্পের কাজ


মোঃ সবুজ মিয়া বগুড়া প্রতিনিধিঃ সিরাজগঞ্জ থেকে বগুড়া হয়ে গাইবান্ধা পর্যন্ত ২২৩ কিলোমিটার বাঙালী নদীর খনন ও তীর সংরক্ষণের কাজের অনুমোদন হয়েছে। এ কাজটি সম্পন্ন করতে সরকারের ব্যয় হবে ২৩শ কোটি টাকা। অপরদিকে বাঙালী নদীর অব্যাহত ভাঙন রোধে বগুড়ার সোনাতলা উপজেলার সোনাকানিয়ায় বাঁশের পাইলিং করে বালুর বস্তা ফেলে ভাঙন রোধ করা হচ্ছে।

পানি উন্নয়ন বোর্ড সূত্রে জানা গেছে, সিরাজগঞ্জ থেকে বগুড়া জেলার ধুনট, সারিয়াকান্দি ও সোনাতলার উপর দিয়ে গাইবান্ধা পর্যন্ত ২২৩ কিলোমিটার বাঙালী নদী খনন ও নদীর তীর সংরক্ষণের জন্য সরকার ২৩শ’ কোটি টাকা বরাদ্দ দিয়েছে।

এর মধ্যে বগুড়ার ৩ উপজেলার ২৯ টি পয়েন্টে ২২টি প্যাকেজের মাধ্যমে কাজটি সম্পন্ন হবে। বগুড়ার অংশে নদী খনন ও তীর সংরক্ষণ করতে ব্যয় হবে ৮শ কোটি টাকা। বাঙালী, করতোয়া ও ফুলঝোড় নদী খনন ও তীর সংরক্ষণ প্রকল্প নামের এই প্রকল্পটি অনুমোদনের পর টেন্ডার প্রক্রিয়ার মাধ্যমে ঠিকাদার নিযুক্ত হয়েছে। সংশ্লিষ্ট ঠিকাদারদের কার্যাদেশও দেওয়া হয়েছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে।

দীর্ঘদিন যাবত বাঙালী নদীর অব্যাহত ভাঙনে শতশত একর আবাদী জমি, গাছপালা ও বাড়িঘর নদীগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। ফলে ওই নদী শাসন ও তীর সংরক্ষণের জন্য স্থায়ী ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সরকার এই প্রকল্প হাতে নিয়েছে। আগামী শুষ্ক মৌসুমে ওই প্রকল্পের কাজ একযোগে শুরু হবে বলে সূত্র নিশ্চিত করেছে।

এ বিষয়ে দেলোয়ার হোসেন নামের পানি উন্নয়ন বোর্ডের একজন কার্য সহকারী জানান, সিরাজগঞ্জ থেকে বগুড়া হয়ে গাইবান্ধা পর্যন্ত ২২৩ কিলোমিটার নদী খনন ও তীর সংরক্ষণ করতে সরকারের ব্যয় হবে ২৩শ’ কোটি টাকা। এই প্রকল্প বাস্তবায়ন হলে কৃষকদের জন্য নদী থেকে পানি উত্তোলন করে কৃষি ফসল ফলানো সহজ হবে।

তিনি আরও জানান, বগুড়ার ধুনট থেকে শুরু করে সোনাতলা পর্যন্ত ২৯টি পয়েন্ট ২২টি প্যাকেজের মাধ্যমে কাজ সম্পূর্ণ হবে। আর এতে সরকারের ব্যয় হবে ৮’শ কোটি টাকা।

পানি উন্নয়ন বোর্ডের আরেক কার্য সহকারী ফারুকুল ইসলাম জানান, সোনাতলার নামাজখালী, সাতবেকী, রংরারপাড়া, হলিদাবগা, নিশ্চিন্তপুর ও সোনাকানিয়ায় নদীর তীর সংরক্ষণের কাজ হবে। এ ছাড়াও বাঙালী নদীর অব্যাহত ভাঙন রোধে সোনাকানিয়ায় বাঁশের পাইলিং করে বালুর বস্তা ফেলানো হচ্ছে, এতে করে ভাঙন রোধ হয়েছে।

এ কাজটি বাস্তবায়ন করছে, মেসার্স তাজওয়ার ট্রেড সিসটেম লিমিটেড। সংশ্লিষ্ট স্থানে ভাঙনরোধের ফলে শত বছরের ঐতিহ্যবাহী জামে মসজিদ, গুড়াভাঙা বাজার ও গুড়াভাঙা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়সহ সোনাতলা গাবতলী সড়ক নদী ভাঙনের হাত থেকে রক্ষা পাবে।

বগুড়া পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মাহবুবুর রহমান জানান, ২২৩ কিলোমিটার নদী খনন ও তীর সংরক্ষণ প্রকল্প অনুমোদন পেয়েছে। কাজটি লটারির মাধ্যমে ঠিকাদার নিযুক্তসহ সংশ্লিষ্ট ঠিকাদারদের কার্যাদেশ দেওয়া হয়েছে। আসন্ন শুষ্ক মৌসুমে প্রকল্পটির কাজ শুরু হবে।

ব্যারিস্টার রফিক-উল হক এর কর্মজীবন

ব্যারিস্টার  রফিক-উল হক এর কর্মজীবন


নিউজ ডেস্কঃ ব্যারিস্টার রফিক-উল হক কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ১৯৫৫ সালে  স্নাতক, ১৯৫৭ সালে দর্শন বিষয়ে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেন। তার পরের  বছর ১৯৫৮ সালে এলএলবি পাস করেন। যুক্তরাজ্য থেকে ১৯৬২ সালে  বার এট ল’ সম্পন্ন করেন। তার কিন বছর পর ১৯৬৫ সালে বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী হিসেবে এবং ১৯৭৩ সালে আপিল বিভাগে আইনজীবী হিসেবে আইন পেশা শুরু করেন। মহান এই আইন বিশেষজ্ঞ বর্ণাঢ্য জীবনে আইন পেশায় দীর্ঘ প্রায় ৬০ বছর পার করেছেন।

ব্যারিস্টার রফিক-উল হক আইন পেশায় বিভিন্ন সময়ে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, জিয়াউর রহমান, হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ, বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার সঙ্গে কাজ করেছেন। দেশের অনেক গুরুত্বপূর্ণ সাংবিধানিক ও আইনি বিষয় নিয়ে সরকারকে সহযোগিতা করেছেন বর্ষীয়ান এই আইনজীবী।

২০১১ সালে প্রিয়তমা স্ত্রী ডা. ফরিদা হকের মৃত্যুর পর থেকেই তিনি নিঃসঙ্গতা অনুভব করতেন বলে তার নিকট আত্নীয় স্বজনেরা জানান। গত ২০১৭ সালের জানুয়ারিতে রাজধানীর একটির বেসরকারি হাসপাতালে তার বাম পায়ে অস্ত্রোপচার করা  হয়। তারপর  থেকে তার স্বাভাবিক হাঁটাচলা ব্যাহত হয়।যে কারণে হুইল চেয়ারে যাওয়া-আসা করতে হতো তাকে


সবার সুরক্ষার কথা চিন্তা করে কঠোরভাবে স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করতে হবে

সবার সুরক্ষার কথা চিন্তা করে কঠোরভাবে স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করতে হবে

মোঃ ফিরোজ হোসাইন,রাজশাহী ব্যুরোঃ করোনা দুর্যোগের মাঝে এ বছর শারদীয় দুর্গাপূজায় নিজের ও পরিবারের সবার সুরক্ষার কথা চিন্তা করে কঠোরভাবে স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করতে হবে বলে জানিয়েছেন  নওগাঁর আত্রাই থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি)  মোঃ মোসলেম উদ্দিন।তিনি বলেন শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্য বজায় রেখে অন্তরের ভক্তি ও শ্রদ্ধার মধ্য দিয়েই উদযাপিত হবে এইবারের পূজা।

গতকাল শুক্রবার দিনব্যাপী উপজেলার বিভিন্ন পূজা মন্ডপ পরিদর্শনকালে তিনি উপোরোক্ত কথাগুলি বলেন।তিনি বলেন, এবারে আত্রাই উপজেলায় ৪৭টি মন্ডপে অনুষ্টিত হচ্ছে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা। শান্তিপূর্ন ভাবে হিন্দু ধর্মের প্রধান উৎসব শারদীয় দূর্গাপূজা অনুষ্ঠান সম্পুন্ন করার লক্ষে আইন শৃংখলা বাহিনী সজাগ দৃষ্টি রাখছে। আইন শৃংখলা বাহিনীর পক্ষ থেকে তিন স্থরের নিরাপত্তার ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়েছে এবং থানার উপ-পরিদর্শক (এস আই) ও সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) দের বিভিন্ন মন্ডপের দায়িত্ব দিয়ে নিয়মিত টহল দেওয়া হচ্ছে।
 
করোনা দুর্যোগের মাঝে এইবছর স্বাস্থ্যবিধি পালন নিশ্চিতকরণের চ্যালেঞ্জের মাঝেই জেলা পুলিশের পক্ষে আত্রাইয়ে সুষ্ঠুভাবে শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত শারদীয় দুর্গাপূজা উদযাপনে সার্বিক সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে সেই লক্ষ্যে ইতিমধ্যেই এলাকাভিত্তিক অন্যান্য বছরের চাইতে এবার জোরালো প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে। আশা করি এবারের পূজায় কোন অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটবেনা। তবে এ জন্য তিনি সকলের সহযোগীতা কামনা করেন।

ব্যারিস্টার রফিক-উল হক আর নেই!

ব্যারিস্টার রফিক-উল হক আর নেই!

 

নিউজ ডেস্কঃ বাংলাদেশের আইনের বাতিঘর  ব্যারিস্টার রফিক-উল হক আর নেই। আজ  সকাল সাড়ে আটটায় রাজধানীর আদ-দ্বীন হাসপাতালে তিনি শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন। ইন্নালিল্লাহি -------- রাজিউন।মৃত্যুর আগ পর্যন্ত  তিনি ওই হাসপাতালে লাইফ সাপোর্টে ছিলেন। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তার মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছেন।গত বুধবার হাসপাতালের মহাপরিচালক ডা. নাহিদ ইয়াসমিন গণমাধ্যমকে বলেন, স্যারের অবস্থা মঙ্গলবার রাত থেকে খারাপের দিকে যায়। পর্যাক্রমে  অক্সিজেনের পরিমাণ কমে গেছে।তখন ‘তাৎক্ষণিকভাবে তাকে আইসিইউতে নেয়া হয়। পরে লাইফ সাপোর্টে রাখা হয়েছে। তার অবস্থা ক্রিটিক্যাল। তবে তিনি সাড়া দিচ্ছেন।’ গত শনিবার কিছুটা সুস্থ বোধ করলে তিনি  সকালের দিকে রিলিজ নিয়ে বাসায় ফিরে যান। কিন্তু দুপুরের পরপরই ফের তাকে ভর্তি করা হয় হাসপাতালে।

নড়াইলে অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক কে গলা কেটে হত্যা

 নড়াইলে অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক কে গলা কেটে হত্যা

মো: আজিজুর বিশ্বাস স্টাফ রিপোর্টার নড়াইল।। নড়াইলে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর (মাউশি) খুলনা অঞ্চলের উপ-পরিচালক নিভা রাণী পাঠকের স্বামী বেসরকারি কলেজের অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক অরুণ রায়কে (৭২) গলা কেটে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। নড়াইল জেলার সদর থানার বেনহাটি গ্রামে নিজ বাড়িতে এই ঘটনা ঘটেছে।

২৩/১০/২০২০  তারিখ :শুক্রবার রাত ৮টার দিকে বিষয়টি জানাজানি হয়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।গ্রামবাসী ও পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, অবসরপ্রাপ্ত কলেজ শিক্ষক অরুণ রায় সদরের শেখহাটি ইউনিয়নের বেনহাটি গ্রামে একা বসবাস করতেন। তার স্ত্রী, এক ছেলে এবং এক মেয়ে চাকরির সুবাদে জেলার বাইরে অবস্থান থাকেন। তবে তারা মাঝে মাঝে ছুটিতে বাড়ি আসেন। শুক্রবার সারাদিন অরুণ রায়ের কোন সাড়া শব্দ না পেয়ে সন্ধ্যার পর নিভা রাণী পাঠক ও তার ছেলে ইন্দ্রজিৎ রায় বাড়িতে আসেন।পরে মই বেয়ে দুইতলা ভবনের দরজা ভেঙে ঘরে প্রবেশ করে চেয়ারের ওপর গলা কাটা অবস্থায় অরুণ রায়ের লাশ দেখতে পান।শেখহাটি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান বুলবুল আহম্মেদ বলেন, বাড়িতে অরুণ রায় একাই থাকতেন, আর কেউ থাকতো না।

সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইলিয়াছ হোসেন অরুণ রায়কে গলা কেটে হত্যার ঘটনা নিশ্চিত করে বলেন, বিষয়টি পুলিশ শুক্রবার সন্ধ্যার পর জানতে পেরেছে।ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে হত্যার বিষয়ে পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে বলে জানান ওসি ইলিয়াছ হোসেন।

শারদীয় দূর্গাপূজা উপলক্ষে শুভেচ্ছা বার্তা

শারদীয় দূর্গাপূজা উপলক্ষে শুভেচ্ছা বার্তা

মোঃ রেজাউল ইসলাম শাফি, কুলাউড়া উপজেলা প্রতিনিধিঃ মৌলভীবাজার জেলা পরিষদের অন্যতম সদস্য,  কুলাউড়া উপজেলা ছাত্রলীগ ও স্বেচ্ছাসেবকলীগ এর সাবেক সাধারণ সম্পাদক, মাহবুবুর রহমান মান্না  শারদীয় দূর্গাপূজা উপলক্ষে শুভেচ্ছা বার্তা জানিয়েছেন,শারদীয় দুর্গোৎসব-২০২০ উপলক্ষে হিন্দু ধর্মাবলম্বী ভাই ও বোনদেরকে 'মৌলভীবাজার জেলা পরিষদ' এর পক্ষ থেকে আন্তরিক শুভেচ্ছা, অভিনন্দন ও আন্তরিক প্রীতি জ্ঞাপন করছি। অশুভ শক্তির বিনাশ ও সত্য-সুন্দরের আরাধনায় দূর্গাপূজাকে আবহমানকাল থেকেই হিন্দু ধর্মাবলম্বী ভাই ও বোনেরা তাদের প্রধান উৎসব হিসেবে পালন করে আসছে।

বাংলাদেশ সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির দেশ। সকল ধর্ম, বর্ণ ও সম্প্রদায়ের মানুষের মধ্যে সৌহার্দ্য ও সম্প্রীতির কামনা করে এবং সেই লক্ষ্যেই সব সময় কাজ করে আসছে।দুর্গোৎসবের আন্তরিক প্রীতি ও সৌহার্দ্যতা সকলের মাঝে অক্ষুণ্ণ থাকুক।করোনা পরিস্থিতিতে সরকারি নির্দেশনাগুলো মেনে শারদীয় দূর্গাপূজা উৎসব পালন করুন। সুস্থ থাকুন নিরাপদে থাকুন।

 

শুভেচ্ছান্তে,

মাহবুবুর রহমান (মান্না)

সদস্য,৬নং ওয়ার্ড (কুলাউড়া)

মৌলভীবাজার জেলা পরিষদ