আশাশুনির সড়কের পাশে মরা শিশু গাছ, যে কোন মুহুর্তে হতে পারে বড় দূর্ঘটনার কারন

আহসান উল্লাহ বাবলু ,আশাশুনি  সাতক্ষীরা  প্রতিনিধি: আশাশুনি উপজেলার বিভিন্ন সড়কের পাশে দড়িয়ে থাকা মরা শিশু গাছ গুলো যে কোন মুহুর্তে হতে পারে কোন একটা বড় দূর্ঘটনার কারন।

আশাশুনি উপজেলার বিভিন্ন সড়ক ঘুরে দেখা গেছে,  বুধহাটা টু উজিরপুরসহ একাধিক সড়কের দু'পাশে কঙ্কালের মতো দাড়িয়ে আছে বড় বড় মরা শিশু গাছ। সামান্য বাতাস বা ঝড় বৃষ্টিতেই এসব মরা গাছের ডালপালা ভেঙে পড়ছে রাস্তার ওপর। অদুর ভবিষ্যতে সম্পূর্ণ গাছটাই ভেঙে পড়ার সম্ভবনাও রয়েছে। সৌন্দর্য্য বর্ধন এবং প্রাকৃতিক ভারসম্য রক্ষার জন্য লাগানো গাছগুলো এখন জনসাধারণের গলার কাটায় পরিণত হয়েছে।

ইতিপূর্বে মরা গাছের ডালপালা ভেঙে পড়ে ঘটেছে ছোটখাটো দুর্ঘটনা। বেশি ক্ষতির সম্ভাবনা সড়কের দুপাশের বসতবাড়িসহ বসতবাড়ি গুলোতে বসবাসরত পরিবারের সদস্যদের। এছাড়া বিপদের আশঙ্কা মাথায় নিয়ে দিনরাত ব্যস্ততম এ সড়কে যাতায়াত করতে হচ্ছে স্কুল কলেজের কোমলমতি শিক্ষার্থীসহ সর্বস্তরের মানুষকে।দীর্ঘদিন থেকে উপজেলার বুধহাটা ইউনিয়নের কামারবাড়ি চার রাস্তার মোড় ও পাইথালী বাজারের মধ্যস্থ আজমল মাস্টার, ছবুর ও কুমার ময়রার বসতবাড়ির সাথে দাড়িয়ে থাকা কঙ্কাল সাদৃশ্য বৃহদাকৃতির কয়েকটি মরা শিশু গাছের ডালপালা ভেঙে পড়ে দুর্ঘটনার আসংখ্যা ক্রমশ বেড়েই চলেছে। এতে করে তীব্র দুর্ভোগে পড়েছেন কয়েকটি পরিবারের সদস্যরা।

চলমান দুর্ঘটনা ও দুর্ভোগ হ্রাসে এসকল মরা গাছ অবিলম্বে কর্তনের পদক্ষেপ নেয়ার জন্য সাতক্ষীরা সড়ক ও জনপথ বিভাগের পাশাপাশি জেলা ও উপজেলা প্রশাসনের শীর্ষ কর্মকর্তাদের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন ভুক্তভোগীরা।

এ বিষয়ে সাতক্ষীরা সড়ক ও জনপথ বিভাগে যোগাযোগ করে জানা গেছে, মরা গাছগুলোর কারনে দুর্ঘটনা বৃদ্ধি ও দুর্ভোগের বিষয়ে বিভিন্ন সময়ে ভুক্তভোগীরা আমাদেরকে জানান। মুলত গাছগুলি সড়ক ও জনপথ বিভাগের আওতাধীন হলেও সেগুলো অপসারনের জন্য উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সিদ্ধান্ত প্রয়োজন।

শেয়ার করুন
পূর্ববর্তী পোষ্ট
পরবর্তী পোষ্ট