রাষ্টীয় মর্যাদায় মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার ফজল আহমেদের দাফন সম্পন্ন




মোঃ আরিফুল ইসলাম,চট্টগ্রাম, প্রতিনিধিঃরাষ্ট্রীয় মর্যাদায় চিরনিদ্রায় শায়িত হলেন আনোয়ারা উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা ফজল আহমেদ।

জাতির এই বীর সন্তানকে রাষ্ট্রীয়  সম্মাননা হিসেবে আনোয়ারা ভূমি সহকারী (এসিল্যান্ড) জনাব তানভীর হোসেন এবং থানা অফিসার ইনচার্জ জনাব দুলাল মাহমুদের নেতৃত্বে গার্ড অব অনার প্রদর্শনপূর্বক নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। নামাজে জানাজা শুরুর পূর্বে মরহুমের জামাতা, ব্যাংকার মাউসুফ উদ্দিন মাসুমের সঞ্চালনায় এই বীর সন্তানের জীবনি নিয়ে সংক্ষিপ্ত কথামালা হয়। কথামালায় বীর মুক্তিযোদ্ধা ফজল আহমেদের জীবন নিয়ে কথা বলেন আনোয়ারা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ্ব তৌহিদুল হক চৌধুরী, আনোয়ারা উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক জনাব আব্দুল মালেক, স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান জনাব ইয়াছিন হীরু, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের ভারপ্রাপ্ত কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মান্নান, মরহুমের পরিবারের পক্ষ থেকে মরহুমের জীবনি নিয়ে কথামালা বলেন ভগ্নিপতি বিশিষ্ট শিল্পপতি, কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সন্মানিত সদস্য, মিডিয়া ব্যক্তিত্ব রোটারিয়ান জনাব মুহাম্মদ কামাল উদ্দিন, মরহুমের জ্যেষ্ঠ ভগ্নিপতি অবসরপ্রাপ্ত সরকারী কর্মকর্তা জনাব রাজা মিয়া। 

নামাজে জানাযায় অন্যান্যের মাঝে উপস্থিত ছিলেন আনোয়ারা উপজেলা আওয়ামীলীগের উপদেষ্টামন্ডলীর সদস্য জনাব মোঃ এয়াকুব চেয়ারম্যান, শামসুল ইসলাম চেয়ারম্যান, জনাব মোহাম্মদ আলী, ১নং বৈরাগ ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান জনাব সোলায়মান তালুকদার, ২নং বারাশত ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান জনাব এম এ কাইয়ুম শাহ, ৭নং আনোয়ারা সদর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান জনাব অসীম কুমার দেব, চৌদ্দগ্রাম উপজেলার সিওরা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান জনাব একরামুল হক, আওয়ামীলীগ নেতা আজিজুল হক চৌধুরী নসু, ৯নং পরৈকৌড়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক জনাব মোঃ শেলিম মামুন, দক্ষিন জেলা যুবলীগ নেতা আব্বাস আলী, ফরিদুল আলম টিপু, নজরুল ইসলাম, আনোয়ারা সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের প্রাক্তন সভাপতি এম নজরুল ইসলাম, প্রাক্তন সহ সভাপতি খোরশেদুল আলম সহ প্রমুখ।

নামাজে জানাযা শেষে মুক্তিযুদ্ধ সংসদসহ বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে পুষ্পমাল্য দিয়ে জাতির এই বীর সন্তানকে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়।

উল্লেখ্যঃ- জাতির এই শ্রেষ্ঠ সন্তান ১৯৫১ সালে আনোয়ারা থানার ডুমুরিয়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। মুক্তিযুদ্ধ পূর্ব তিনি পাকিস্তান সেনাবাহিনীতে কর্মরত ছিলেন। স্বাধীনতা যুদ্ধ শুরু হলে তিনি পাকিস্তান সেনাবাহিনী থেকে স্বেচ্ছায় অব্যহতি নিয়ে মহান মুক্তিযুদ্ধে সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করেন। মুক্তিযুদ্ধ পরবর্তী তিনি রাষ্ট্রীয় বিভিন্ন আন্দোলন সংগ্রামে অংশগ্রহণ করেন এবং সরব ভূমিকা রাখেন। ২০০৫ সালে মরহুম ফজল আহমেদ আনোয়ারা মুক্তিযুদ্ধ সংসদের কমান্ডার হিসেবে দায়িত্বপ্রাপ্ত হোন এবং দায়িত্ব নেয়ার পর মৃত্যু অব্দি তিনি আনোয়ারার প্রত্যন্ত অঞ্চলে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা মুক্তিযোদ্ধাদের ঐক্যবদ্ধ করার প্রয়াসে এবং তাদের সুখ দুঃখে সাংগঠনিকভাবে পাশে থাকা, ছায়া দেয়া এবং মুক্তিযোদ্ধাদের বিভিন্ন অধিকার প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে কাজ করেছিলেন। মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বিরোধীদের বিরুদ্ধেও তাঁর ভূয়সী ভূমিকা ছিল। 

গত শনিবার ৭ই নভেম্বর ২০২০ইং সন্ধ্যা ৬:৩০ মিনিটে তাঁর শহরের বাসভবনে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন জাতির এই বীর সন্তান। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, চার পুত্র সন্তান দুই কন্যা সন্তান সন্তুতিসহ অসংখ্য গুনগ্রাহি আর শুভাকাঙ্খী রেখে যান।


শেয়ার করুন
পূর্ববর্তী পোষ্ট
পরবর্তী পোষ্ট