গ্রামগঞ্জে সাহিত্য-সাংস্কৃতিক সংগঠনগুলো বন্ধহয়ে যাওয়ায় সাম্প্রাদায়িক শক্তির উত্থান হচ্ছে

পটিয়া(চট্টগ্রাম) থেকে  সেলিম চৌধুরীঃ- বাংলাদেশ গণনাট্য সংস্থার উদ্যোগে উপজেলার নাইখাইন এলাকায় সংগঠনের দুই ব্যক্তি বীরমুক্তিযোদ্ধা নাট্যকার আবছার উদ্দীন আহম্মদ ও শিক্ষক নেতা ও নাট্যকার আশরাফ উদ্দীন আহম্মদের স্মরণ সভা গত  শুক্রবার বিকেলে হাতেখড়ি স্কুলের মাঠে অনুষ্ঠিত হয়।  বাংলাদেশ নাট্য সংস্থার সভাপতি তাজ উদ্দীন আজমের সভাপতিত্বে রানা বড়ুয়ার ও জিত বড়ুয়ার য়ৌথ সঞ্চালনায় প্রধান অতিথি ছিলেন গণটান্য সংস্থার প্রতিষ্ঠাতা ও গণমুক্তি ইউনিয়নের আহ্বায়ক কমরেড নাছির উদ্দীন আহম্মদ নাসু, প্রধান বক্তা ছিলেন পটিয়া উপজেলার মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মাজেদা বেগম শিরু, বক্তব্য রাখেন গণমুক্তি ইউনিয়ন চট্টগ্রাম জেলার সমন্বয়ক রাজা মিয়া, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার বীরমুক্তিযোদ্ধা নুর মোহাম্মদ, বিপ্লবী ওয়াকার্স পার্টি চট্টগ্রাম জেলার সাধারণ সম্পাদক কমরেড নজরুল ইসলাম, জঙ্গলখাইন ইউপি আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মর্তুজা আলী মুন্সি, সাবেক ছাত্র নেতা জয়নাল আবেদিন, রাখাল বড়ুয়া, অধ্যাপক শান্তপদ বড়ুয়া, পটয়া জেলা বাস্তবায়ন কমিটির আহ্বায়ক মুক্তিযোদ্ধা  আহমদ নুর, কমরেড অমৃত বড়ুয়া, নারী নেত্রী লুৎফুৃননেছা আঁখি,জাপা নেতা আব্দুস ছত্তার, খোকন মল্লিক প্রমুখ। এসময় বক্তারা বলেন, সারা দেশে এক সময় গ্রাম গঞ্জের সামাজিক সংগঠনগুলো পথ নাটক মঞ্চ নাটক তৈরী করে মানুষকে বিনোদন দিয়ে আসছিল। সারা দেশের গ্রাম গঞ্জের সাহিত্য সাংস্কৃতিক সংগঠনগুলো বন্ধ হয়ে যাওয়ায় দেশের সাম্প্রদায়িক সংগঠনগুলো দিনদিন শক্তিশালী হচ্ছে। সাম্প্রাদায়িক সংগঠনগুলো পুরোপুরি মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বিরোধী শক্তি। মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বিরোধী সংগঠনগুলোর উত্তান ঠেকাতে না পারলে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা এবং অসাম্প্রাদায়িক বাংলাদেশ নির্মাণ করতে আগামী প্রজন্মকে কঠিন সময় পার করতে হবে।


শেয়ার করুন
পূর্ববর্তী পোষ্ট
পরবর্তী পোষ্ট