আত্রাইয়ে রবিশস্য চাষে কৃষকদের ব্যস্ত সময়

 
রাজশাহী ব্যুরোঃনওগাঁর আত্রাইয়ে বন্যায় এলাকার কৃষকদের আমন চাষের স্বপ্ন তছনছ করে দিয়েছে। 
এলাকার কৃষকরা আমন হারিয়ে এবার ঝুঁকে পরেছেন রবিশস্য চাষে। অন্যান্য বারের চেয়ে  এবার রেকর্ড পরিমান জমিতে রবিশস্যচাষ করা হচ্ছে।
 উপজেলার ৮ টি ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকার মাঠে চলছে রবিশস্য চাষের প্রস্তুতি। ইতিমধ্যে  বিভিন্ন মাঠে শরিষা,গম, আলু, ভূট্টাসহ বিভিন্ন রবিসশ্য রোপন সম্পন্ন করেছে কৃষকরা৷ গতবারের চেয়ে এবারে বেশি জমিতে রবিশস্যচাষ করা হবে বলে কৃষকরা ধারণা করেন।
আত্রাই উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা যায়, এবারে রবি মৌসুমে উপজেলার ৮টি ইউনিয়নে ১০ হাজার হেক্টর জমিতে রবিশস্য উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়। উপজেলার বিভিন্ন মাঠ থেকে বন্যার পানি নেমে যাওয়ার সাথে সাথে কৃষকরা রবিশস্য চাষ শুরু  করছেন। আগাম জাতের শরিষা,গম, আলু ও ভূট্টা উৎপাদন করে বাজারজাত করলে কৃষকরা ব্যাপক লাভবান হবে বলে ধারনা করেন । রবিশস্যের দাম বাজারে ভাল থাকায়  রবিশস্যচাষে কৃষকদের মাঝে যথেষ্ট অগ্রহ দেখা যাচ্ছে। রবিসশ্য উৎপাদনে খরচ টা অনেক কম হয় কিন্তু লাভ বেশি হওয়ায় কৃষকরা অনেক আগ্রহী।নন্দনালী গ্রামের আফজাল হোসেন বলেন, অন্যান্যবারের তুলনায় আমরা অধিকহারে আলু শরিষা, গম,ও ভূট্টাচাষ করছি। যেহেতু এগুলো  উৎপাদনে খরচ অনেক কম অথচ লাভ বেশি তাই আমরা ঝুঁকে পড়েছি। উপজেলার হাটুরিয়া  গ্রামের আবু তাহের ও আজাদ হোসেন  বলেন, গতবার আলুচাষ করে আমরা ভাল লাভবান হয়েছি। এ জন্য এবার আগাম আলুচাষ করছি। এবারে বিলম্বিত বন্যা হওয়ায় আমাদের রবিসশ্যচাষে কিছুটা প্রভাব ফেলেছে। 
আত্রাই উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ কেএম কাউছার হোসেন বলেন, কৃষকরা আলু,শরিষা, গম,ভূট্টা, সরিষাসহ বিভিন্ন ফসলের বীজ ক্রয় করে যেন প্রতারিত না হয় এ জন্য উপজেলা পর্যায় থেকে সার্বক্ষণিক মনিটরিং করা হয়তেছে। 
এ ছাড়াও অল্প খরচ করে কৃষকরা যেন রবিসশ্য উৎপাদন করতে পারে এ জন্য বিভিন্নভাবে আমরা তাদেরকে পরামর্শ প্রদান করতেছি এবং সরকারী ভাবে বীজ ও সার দিয়ে প্রান্তিক ও বর্গাচাষী কৃষকদের কে আমরা সার্বিক  সহযোগিতা করতেছি।

শেয়ার করুন
পূর্ববর্তী পোষ্ট
পরবর্তী পোষ্ট