লোহাগড়া ভূয়া ডাক্তারের খপ্পরের শিকার সহজ সরল রোগীরা

লোহাগড়া ভূয়া ডাক্তারের খপ্পরের শিকার সহজ সরল রোগীরা

আজিজুর বিশ্বাস স্টাফ রিপোর্টার   নড়াইল প্রতিনিধিঃ 
লোহাগড়া ভূয়া ডাক্তারের খপ্পরের শিকার সহজ সরল রোগীরা,নড়াইল জেলার লোহাগড়া উপজেলার ১ নং নলদী ইউনিয়নের চাকুলিয়া গ্রামের ভুয়া ডাক্তারের খপ্পরে পড়ে প্রতারণার শিকার হচ্ছে অজপাড়া গায়ের সহজ সরল মানুষ।


এই চাকুলিয়া গ্রামটা লোহাগড়া উপজেলা সদর থেকে অানুমানিক ২৫ কিলোমিটার  দুরে, এখানে মৃত প্রমতন ভুষন রায়ের ছেলে  সুভাষ রায়, ও তার স্ত্রী উষা রানী ( ইউপি সদস্য) গড়ে তুলেছে সরকারের অনুমোদন বিহিন অপ চিকিৎসালয়।

অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে এবং অপারেশন থিয়েটার বাদে এই কথিত ডাক্তার স্বামী স্ত্রী মিলে মানবদেহে অস্ত্রোপচার করেন।


সরোজমিনে গিয়ে রুগী মো: মকলেছ বিশ্বাস,(৭০) ও শরিফা বেগম (৩০) শহিদুল জমাদ্দার,রবিউল ইসলাম,সহ অারে ৩/৪ জনের সাথে কথা হলে তারা জানাই, অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ ও অপারেশন থিয়েটার ছাড়া রুগীদের অপারেশন করে আসছেন দুই কথিত ডাক্তার।



সাংবাদিকরা এই কথিত ডাক্তারের বাড়িতে গিয়ে ভর্তি থাকা দুইজন রোগীর সাথে কথা বলেন, একজন মকলেছ বিশ্বাস, সে বাউসী রুগী তাকে অপারেশন করে ৪,হাজার টাকা নিয়েছেন, ও ২নং রুগী শরিফা বেগম,পাইলস্ অপারেশন করিয়ে ৬ হাজার টাকা নিয়েছেন, কথিত ডাক্তার উষা রানী, ও সুভাষ রায়।


স্থানীয় লোকজনদের সাথে কথা হলে তারা বলেন, প্রতিদিন দেখা যাই অাগত রুগীরা ডাক্তার সুভাষ ও তার সহযোগী স্ত্রী কর্তৃক অপচিকিৎসার শিকার হচ্ছে। অারো জানা যায় তিনি মিঠাপুর বাজারে সৌমিক ফার্মেসিতে নিয়মিত রুগী দেখেন।


কথিত ডাক্তার সুভাষ এর সাথে কথা হলে তিনি বলেন অামার সরকারী কোনো অনুমোদন নাই, অামার পূর্ব পুরুষেরা করে গেছে তাই অামি এই পেশায় অাছি, তিনি অারো বলেন সে স্থানীয়  নেতাও সাংবাদিকদের ম্যানেজ করে দিব্বি এই ব্যাবসা চালিয়ে যাচ্ছে। 

নড়াইলের সিভিল সার্জন ডা:অাব্দুল মোমেন এর সাথে মুঠোফোনে কথা হলে তিনি বলেন,এই বিষয়ে খোজ খবর নিয়ে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।




শেয়ার করুন
পূর্ববর্তী পোষ্ট
পরবর্তী পোষ্ট