শারদীয় দুর্গাপূজায় নিজের ও পরিবারের সবার সুরক্ষার কথা চিন্তা করে কঠোরভাবে স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করতে হবে

শারদীয় দুর্গাপূজায় নিজের ও পরিবারের সবার সুরক্ষার কথা চিন্তা করে কঠোরভাবে স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করতে হবে


মোঃ সবুজ মিয়া বগুড়া প্রতিনিধিঃ  বগুড়া জেলা পুলিশ সুপার আলী আশরাফ ভূঞা বিপিএম (বার) বলেছেন, করোনা দুর্যোগের মাঝে এই বছর শারদীয় দুর্গাপূজায় নিজের ও পরিবারের সবার সুরক্ষার কথা চিন্তা করে কঠোরভাবে স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করতে হবে। অন্তরের ভক্তি ও শ্রদ্ধার মধ্য দিয়েই উদযাপিত হবে এইবারের পূজা।

শিব শঙ্কর স্মৃতি পরিষদের আয়োজনে বিকেলে শহরের চেলোপাড়া দূর্জয় ক্লাব প্রাঙ্গণে শারদীয় দুর্গাপূজা ২০২০ইং উপলক্ষ্যে করোনায় ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের সদস্য ও প্রতি বছরের ন্যায় এলাকার সাধারণ মানুষের মাঝে বস্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি উপোরোক্ত কথাগুলি বলেন। বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ বগুড়া পৌর কমিটির সভাপতি ব্যবসায়ী নেতা পরিমল প্রসাদ রাজের সার্বিক ব্যবস্থাপনায় অনুষ্ঠানে পুলিশ সুপার আলী আশরাফ আরো বলেন, পূজা কে কেন্দ্র করে পুরো শহরে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। করোনা দুর্যোগের মাঝে এইবছর স্বাস্থ্যবিধি পালন নিশ্চিতকরণের চ্যালেঞ্জের মাঝেই জেলা পুলিশের পক্ষে বগুড়ায় সুষ্ঠুভাবে শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত শারদীয় দুর্গাপূজা উদযাপনে সার্বিক সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে সেই লক্ষ্যে ইতিমধ্যেই এলাকাভিত্তিক সকল প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে। পরিশেষে পূজায় অসহায়দের পাশে এগিয়ে আসার জন্যে এসপি আশরাফ আয়োজকদের বিশেষভাবে ধন্যবাদও জ্ঞাপন করেন।

বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ বগুড়া পৌর কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক গণমাধ্যমকর্মী সঞ্জু রায়ের পরিচালনায় বস্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) সনাতন চক্রবর্তী, বগুড়া সদর থানার অফিসার ইনচার্জ হুমায়ুন কবির, দৈনিক করতোয়ার বার্তা সম্পাদক প্রদীপ ভট্টাচার্য্য শংকর, নারুলী পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ ইন্সপেক্টর জামিরুল ইসলাম এবং ডেন্টিস্ট সুজিত কুমার তালুকদার।

এছাড়াও অন্যান্যদের মাঝে উপস্থিত ছিলেন নারুলী পুলিশ ফাঁড়ির এস.আই বেলাল হোসেন, পূজা উদযাপন পরিষদ পৌর কমিটির কোষাধ্যক্ষ জীবন দাস, সাংস্কৃতিক সম্পাদক চন্দন কুমার রায়, বিশিষ্ট সমাজসেবক যথাক্রমে সাজেদুর রহমান শিপলু, ফরহাদ রাজিব ও আমিনুর রহমান সাগর, ব্যবসায়ী রাজু আহম্মেদ, ৬ নং ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সভাপতি মোহাম্মদ আলী শান্ত প্রমুখ। অনুষ্ঠানে ১ম ধাপে ধর্ম, বর্ণ, নির্বিশেষে শতাধিক মানুষের মাঝে পর্যায়ক্রমে শাড়ি, লুঙ্গি ও মাস্ক বিতরণ করা হয়েছে।

'আমার সিলেট নিউজ'এর উদ্ভোধন ও প্রতিনিধি সম্মেলন অনুষ্ঠিত

'আমার সিলেট নিউজ'এর উদ্ভোধন ও প্রতিনিধি সম্মেলন অনুষ্ঠিত


মোঃ নাসির চৌধুরী তানভীর ।।  সিলেটের জনপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল 'আমার সিলেট  নিউজ'এর উদ্ভোধন ও প্রতিনিধি সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার (২৩ অক্টোবর) বাহুবল উপজেলা অফিসার্স ক্লাবে জাক- জমকপূর্ণ ভাবে এ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। 

'আমার সিলেট নিউজ' এর সম্পাদক এম.এ মজিদ তালুকদারের সভাপতিত্বে,উক্ত পোর্টালের প্রকাশ  কামরুল উদ্দিন ইমন ও বার্তা সম্পাদক শাহ মোহাম্মদ দুলাল আহমেদের সঞ্চালনায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত হবিগঞ্জ ১ বাহুবল- নবীগঞ্জের সাংসদ গাজী মোহাম্মদ শাহনেওয়াজ মিলাদ গাজী,বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাহুবল-নবীগঞ্জ সাবেক সংসদ সদস্য এম.এ মুনিম চৌধুরী বাবু,বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাহুবল উপজেলা নির্বাহী অফিসার স্নিগ্ধা তালুকদার,উপস্থিত ছিলেন বাহুবল মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ কামরুজ্জামান মিলন,উপস্থিত ছিলেন,বাহুবল উপজেলা আওয়ামীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সোহেল আহমেদ কুটি,এতে উপস্থিত ছিলেন মদিনা জেলা যুবলীগের সভাপতি আঃ মালেক মাদানি, 'আমার সিলেট নিউজ' এর নির্বাহী সম্পাদক আহমেদ মালিক।উক্ত অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, বাহুবল উপজেলার সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক তারা মিয়া,বাহুবল উপজেলা ছাত্রীলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক  এম রশীদ আহমেদ,'দেওয়ান ফরিদ গাজী স্মৃতি সংসদ'র সভাপতি হুমায়ুন রশীদ জাবেদ। 

এতে উপস্থিত ছিলেন সহ- বার্তা সম্পাদক মনিরুল ইসলাম, ব্যবস্থাপনা সম্পাদক হোসাইন মোহাম্মদ আব্দাল, সাহিত্য ফরহাদ বিন সাজিদ।

এছাড়াও 'আমার সিলেট নিউজ' কর্মরত সিলেটের জেলা,উপজেলা, বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস প্রতিনিধিদে মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, জুবাইয়ের আহমেদ,স্টাফ রিপোর্টার (বাহুবল) কাজী সুজন,স্টাফ রিপোর্টার (চুনারুঘাট) মারজান আহমেফ,স্টাফ রিপোর্টার (কুলাউড়া) মাইনুল ইসলাম (বড়লেখা) প্রতিনিধি, ইমরান আহমেদ স্টাফ রিপোর্টার (শ্রীমঙ্গল) ইমরান হোসেন চৌধুরী,স্টাফ রিপোর্টার (সিলেট)হাবীব হোসেন সিলেটের দক্ষিন সুরমা প্রতিনিধি,নাজিম মাহমুদ(গোয়াইনঘাট) প্রতিনিধি, শেখ মোফাজ্জল ইসলাম সজীব  স্টাফ রিপোর্টার (নবীগঞ্জ) নাজমুল ইসলাম নবীগঞ্জ প্রতিনিধি,শফিউল হাসান বিশনাথ প্রতিনিধি।এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন নবীগঞ্জ অনলাইন প্রেসক্লাবের সভাপতি নাবেদ মিয়া,সাধারণ সম্পাদক আলী জাবেদ মান্না সিনিয়র সহ-সভাপতি মোফাজ্জল ইসলাম সজীব।সম্মেলনে প্রতিনিধিদের মধ্যে টি-শার্ট প্রেস কার্ড প্রদানের মধ্য দিয়ে 'আমার সিলেট নিউজ' এর সম্মেলন সমাপ্তি ঘোষণা করা হয়।

পটিয়া পৌর সদরে ব্যবসায়ীকে হুমকি

পটিয়া পৌর সদরে  ব্যবসায়ীকে হুমকি

আরিফুল ইসলাম, পটিয়াঃ- চট্টগ্রামের পটিয়া পৌরসভার ৮ নম্বর ওয়ার্ড জমিরীয়া মাদ্রাসা রোড়ে আরবী ক্লথ ষ্টোর এন্ড টেইলার্স দোকানের জমিদার দেলোয়ার হোসেন নামে এক ব্যাবসায়ি নানান ধরনের হুমকি ধামকি দিয়েছে মর্মে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এঘটনায় দোকানের মালিক বাদী হয়ে  মোঃ এমদাদ, মোঃ শওকত,মোঃ অহিদুর রহমান, মোঃ জলিল, মোঃ সাদ্দাম সহ অজ্ঞাত নামা ৫/৬ জনের বিরুদ্ধে সর্ব সাং গোবিন্দরখীল এদের বিরুদ্ধে পটিয়া থানায় অভিযোগ দায়ে করেছে। দেলোয়ার হোসেন অভিযোগে উল্লেখ করেন তার দোকানে ব্যাবসা বানিজ্য প্রায় সময় জমজমাট থাকে। এতে বিবাদীগণ প্রতিহিংসা পরায়ণ হয়ে গত দুই মাস ধরে অহেতুক বিবাদীগণ দেলোয়ার হোসেন দোকানে এসে ঝগড়া বিবাদ দোকান ঘর যে কোন সময় নিয়ে নিবে বলিয়া এবং পটিয়া ছাড়া করিবে মর্মে বিভিন্ন ধরনের হুমকি ধামকি দিয়ে আসছে। এ সংক্রান্ত পটিয়া থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করলে অভিযোগটি পুলিশের তদন্তধীন রয়েছে। কিন্তু ২২ অক্টোবর রাত ১১টায়  দেলোয়ার হোসেন প্রতিদিনের ন্যায় দোকান বন্ধ করে চলে যায়। ২৩ অক্টোবর দেলোয়ার সকাল সাড়ে ৯ টার সময় দোকান খুলতে এসে দেখতে পাই দোকানের তালা ভাঙ্গিয়ে দোকানের ভিতর শো-কেইজ ভাঙ্গিয়া দামী কাপড় চোপর যার আনুমানিক মুল্য দুই লাখ টাকা কে বা কাহারা নিয়ে যায়। দেলোয়ার হোসেন এর সন্দেহ বণির্ত বিবাদীগণ এমন অন্যায় কাজ করেছে। বিষয়টি দেলোয়ার জমিরিয়া রোড় ব্যাবসায়ি সমিতি ও স্থানীয় গন্যমান্য ব্যাক্তিদের অবহিত করেন তাদের পরামর্শক্রমে পটিয়া থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন বলে সুএে প্রকাশ।পটিয়া থানার দায়েরকৃত অভিযোগের ভিত্তিতে ওসির নির্দেশে ২৩ অক্টোবর জুমার নামাজ এর পর এস আই মোক্তার হোসেন ঘটনাটি তদন্তে যান এবং বিবাধীগণকে ২৪ অক্টোবর শনিবার বিকাল ৫ টায় থানায় হাজির হওয়ার নির্দেশ দেন বলে অভিযোগকারী দেলোয়ার হোসেন জানান। সে এ ব্যাপারে পটিয়া থানার ওসি মোঃ বোরহান উদ্দীনের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

কুলাউড়ায় সোস্যাল কেয়ার অব নেশনের নতুন কমিটি গঠন

 কুলাউড়ায় সোস্যাল কেয়ার অব নেশনের নতুন কমিটি গঠন
 কুলাউড়ায় সোস্যাল কেয়ার অব নেশনের নতুন কমিটি গঠন

মোঃরেজাউল ইসলাম শাফি, কুলাউড়া উপজেলা প্রতিনিধিঃ কুলাউড়ার সামাজিক অঙ্গণে ভুমিকা রাখা অন্যতম সামাজিক সংগঠন সোস্যাল কেয়ার অব নেশনের ৮ম মেয়াদে (২০২০-২১) বর্ষের কার্যকরি কমিটি ঘোষনা করা হয়েছে।শুক্রবার (২৩ অক্টোবর) বিকেলে কুলাউড়া পৌর শহরের একটি অভিজাত রেস্টুরেন্টে সংগঠনের কমিটি গঠনের লক্ষে এক বিশেষ আলোচনা সভা অনুষ্টিত হয়।

সভায় সদ্য বিদায়ী কমিটির সভাপতি সোহেল আহমদের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক ফয়ছল আহমদের সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সিনিয়র সদস্য আজিজুল ইসলাম উজ্জ্বল, জামিল আহমেদ চৌধুরী,খায়রুল কবির জাফর,মোয়াইমিন ইসলাম মাহিন, সৈয়দ আনিসুল ইসলাম সুজন,সফি আহমদ ও সাংগঠনিক সম্পাদক জাহিদ হাসান শিবলু প্রমুখ।সভায় সকল সদস্যের সর্বসম্মতি ক্রমে আগামী এক বছরের জন্য সালাউদ্দিন আল সালোক - কে সভাপতি, মোক্তার আহমদ - কে সাধারণ সম্পাদক ও খালেদুর রহমান তানজুল - কে সাংগঠনিক সম্পাদক মনোনিত করে ৪০ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি ঘোষনা করা হয়।নব-গঠিত কমিটির দায়িত্বপ্রাপ্ত অন্যান্য সদস্যদের মধ্যে তাহমিদ খাঁন শাওনকে যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক, অলক চন্দকে সহ সাংগঠনিক সম্পাদক , মাসুদ আহমেদকে ত্রাণ ও দুর্যোগ বিষয়ক সম্পাদক,সুমন আহমদকে প্রচার সম্পাদক, সৈয়দ সামসুল ইসলাম তানিমকে শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক , সাইদ আহমেদকে আপ্যায়ন বিষয়ক সম্পাদক হিসাবে ঘোষণা করা হয়।কার্যকরি কমিটির সিনিয়র সদস্যবৃন্দরা হলেন সিনিয়র সদস্য খায়রুল কবির জাফর, আজিজুল ইসলাম উজ্জল, জামিল আহমদ চৌধুরী, সৈয়দ আনিসুল ইসলাম সুজন, মোহাইমিন ইসলাম মাহিন, সোহেল আহমদ, সফি আহমদ, রাফে আবু রাযিন, ওবায়দুল ইসলাম রাবি, এনায়েত মাহমুদ মাহি, ফজলে রাব্বি চৌধুরী, আবু রোম্মান চৌধুরী, রনি আহমদ, আব্দুস সামাদ চৌধুরী, সায়েম আহমদ, সৈয়দ আজিজুল ইসলাম, আশিকুল ইসলাম বাবু, আমিন জাহান, সৈয়দ আবীর হোসেন, শফিকুল ইসলাম আরিফ, আব্দুল মুনিম সাজেদ, নাহিদ আহমদ, মেহেদী হাসান সহ সদস্য হিসেবে, তাজুল ইসলাম তুহিন, নাহিম খান, আতিকুর রহমান, এস আর চৌধুরী শাওন, অলিদ আহমেদ, মাছুম বিল্লাহ, সাজ্জাদুর রহমান সাজুকে মনোনীত করা হয়।সভা শেষে নব গঠিত কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের হাতে আগামী এক বছরের জন্য সংগঠনের সকল দায়িত্ব অর্পণ করেন সদ্য বিদায়ি কমিটির সদস্যরা।

কুলাউড়ার বড়মচাল থেকে পরিত্যক্ত গ্রেনেড উদ্ধার

কুলাউড়ার  বড়মচাল থেকে পরিত্যক্ত গ্রেনেড উদ্ধার


পরিত্যক্ত গ্রেনেড উদ্ধার
মোঃরেজাউল ইসলাম শাফি, কুলাউড়া উপজেলা প্রতিনিধিঃ কুলাউড়া উপজেলা বরমচাল ইউনিয়নের নন্দনগর এলাকা থেকে একটি পরিত্যক্ত গ্রেনেড উদ্ধাতর করেছে পুলিশ। ২৩ অক্টোবর শুক্রবার সন্ধ্যায় গ্রেনেডটি উদ্ধার করা হয়।পুলিশ ও স্থানীয়সূত্রে জানা যায়, নন্দনগর এলাকায় বিকালে মাটি খুঁড়তে গিয়ে গ্রেনেডের মতো একটি বস্তু দেখতে পায় স্থানীয়রা। পরে খবর পেয়ে কুলাউড়া থানা পুলিশ সেটি উদ্ধার করে নিয়ে আসে। স্থানীয়দের ধারণা, এটি পাকিস্তান আমলের ১৯৬৯ সালে মাটির গভীরে পুতে রাখা শক্তিশালী গ্রেনেড।গ্রেনেড উদ্ধারের বিষয়টি নিশ্চিত করে কুলাউড়া থানার ওসি ইয়ারদৌস হাসান বলেন, ‘উদ্ধারকৃত গ্রেনেডটি অব্যবহৃত এবং পরিত্যক্ত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে।

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ভোলা ব্লাড ডোনার্স ক্লাব(BBDC)এর লিডার নির্বাচিত হলেন শিবলী

 চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ভোলা ব্লাড ডোনার্স ক্লাব(BBDC)এর লিডার নির্বাচিত হলেন শিবলী

মোঃ আওলাদ হোসেন জেলা প্রতিনিধি,ভোলা,(দৌলতখান) মানুষ দেখতে মানুষ আসে, বিরুদ্ধতার ভীড় বাড়ায়, তুমিও মানুষ আমিও মানুষ তফাৎ শুধু শীর দোড়ায়”ভোলার যুবকদের একটি সম্পূর্ণ অরাজনৈতিক স্বেচ্ছাসেবী সক্রিয় সংগঠন ভোলা ব্লাড ডোনার্স ক্লাব (BBDC)। “মানব সেবার শপথ নিন,মুমূর্ষু কে রক্ত দিন” এই স্লোগান কে সামনে রেখে গ্রুপটি এগিয়ে যাচ্ছে সমাজের শিকর থেকে শিখরে। গ্রুপের একমাত্র লক্ষ্য ও উদ্দ্যেশ্য হচ্ছে কেউ যেন রক্ত স্বল্পতার কারনে কোন ধরনের সমস্যার না পরে।ইদানীং লক্ষ্য করা গেছে, বেশ কতগুলো প্রতারক চক্র মুমূর্ষু রোগীকে ব্লাড দেয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে বিভিন্ন ভাবে রুগীকে হয়রানি ও টাকা অাত্নসাৎ করে।তারই রেস ধরে ভোলা ব্লাড ডোনার্স ক্লাব প্রতিষ্ঠা। সংগঠনটি ভোলা জেলার প্রতিটি উপজেলার ইউনিয়ন ও অধিকাংশ গ্রামে টিম লিডার নির্বাচিত করা হয়েছে।

সাম্প্রতিক পুরে দেশ ব্যাপী সংগঠনটির কার্যক্রম চালিয়ে যাওয়ার নিমিত্তে দেশের প্রত্যেটি অঞ্চলে সংগঠনটির টিম লিডার নির্বাচন কার্যক্রম চলছে । এরই মধ্যে বরিশাল,পটুয়াখালী,ঢাকাতে বেশ কতগুলো কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের টিম লিডার গঠিত হয়েছে। অদ্য ২৩/১০/২০২০ইং তারিখ রোজ শুক্রবার চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সোহরাওয়ার্দী হলের ইংরেজি সাহিত্য বিভাগের মেধাবী ছাত্র মোঃ মাহমুদুল হাসান শিবলী কে টিম লিডার নির্বাচিত করা হয়েছে। সংগঠনটির এডমিন এস,এম মোঃআলী হায়দার দৈনিক উপকূল বার্তাকে বলেন,আমরা পর্যায়ক্রমে দেশের সবকয়টা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিটি হল থেকে টিম লিডার নির্বাচিত করব,ইনশাআল্লাহ। আমাদের একমাত্র প্রত্যয় ও স্লোগান “মানব সেবায় শপথ নিন,মুমূর্ষু কে রক্ত দিন”
যেন রক্তের অভাবে কারো প্রান না ঝরে।

নগরকান্দা ও সালথায় পুজামন্ডপ পরিদর্শন করেছেন রিংকু

 নগরকান্দা ও সালথায় পুজামন্ডপ পরিদর্শন করেছেন রিংকু
নগরকান্দা ও সালথায় পুজামন্ডপ পরিদর্শন করেছেন রিংকু 

ফরিদপুর প্রতিনিধিঃ  ফরিদপুরের নগরকান্দা ও সালথায় পুজামন্ডপ পরিদর্শন করেছেন বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক শামা ওবায়েদ ইসলাম রিংকু। বৃহস্পতিবার বিকালে বিভিন্ন পুজামন্ডপ ঘুরে দেখেন। এ সময় তিনি পুজারিদের খোজ খবর নেন এবং নগদ অর্থ সহায়তা প্রদান করেন। এসময় তার সম্গে ছিলেন, সালথা উপজেলা বিএনপির সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান তালুকদার, নগরকান্দা উপজেলা বিএনপির সহ-সভাপতি হাবিবুর রহমান বাবুল তালুকদার, সাধারণ সম্পাদক সাইফুর রহমান মুকুল, ফরিদপুর জেলা যুবদলের সহ-সভাপতি ও নগরকান্দা উপজেলা যুবদলের সভাপতি আলিমুজ্জামান সেলু, জেলা যুবদলের যুগ্ন সম্পাদক ও পৌর যুবদলের আহবায়ক হেলাল উদ্দিন হেলাল, যুবদল নেতা তৈয়াবুর রহমান মাসুদ, উপজেলা শ্রমিক দলের সভাপতি মাসুদ রানা প্রমুখ।

জাহানারা কাঞ্চনের ২৭তম মৃত্যুবার্ষিকীতে বড়লেখা নিসচা'র দোয়া মাহফিল

জাহানারা কাঞ্চনের ২৭তম মৃত্যুবার্ষিকীতে বড়লেখা নিসচা'র দোয়া মাহফিল
জাহানারা কাঞ্চনের ২৭তম মৃত্যুবার্ষিকীতে বড়লেখা নিসচা'র দোয়া মাহফিল

আকরাম হোসাইন মৌলভীবাজার জেলা প্রতিনিধিঃ মৌলভীবাজারের বড়লেখা উপজেলায় নিরাপদ সড়ক চাই নিসচা'র প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চনের সহধর্মিণী মরহুমা জাহানারা কাঞ্চন এর ২৭তম মৃত্যু বার্ষিকী উপলক্ষে ও সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত'দের রুহের মাগফিরাত কামনায় মিলাদ ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে।২৩ অক্টোবর মরহুমা জাহানারা কাঞ্চনের ২৭তম মৃত্যুবার্ষিকী। নিরাপদ সড়ক চাই-নিসচা বড়লেখা উপজেলা শাখার আয়োজনে বড়লেখা পৌর শহরের হিফজুল কোরআন হাফিজিয়া মাদরাসা ও এতিমখানা'য় শুক্রবার (২৩ অক্টোবর) রাত ৮ ঘটিকায় এই মিলাদ ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।

দোয়া মাহফিলে এই পর্যন্ত সড়ক দুর্ঘটনায় নিহতদের আত্মার শান্তি, আহতদের দ্রুত সুস্থ্যতা কামনা করে দোয়া পরিচালনা করেন হিফজুল কোরআন হাফিজিয়া মাদরাসার প্রিন্সিপাল হযরত মাওলানা মো: খলিলুর রহমান।মিলাদ ও দোয়া মাহফিলে উপস্থিত ছিলেন বড়লেখা বাজারের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মো: হানিফ পারভেজ, নিসচা বড়লেখা উপজেলা আহ্বায়ক তাহমীদ ইশাদ রিপন, যুগ্ম আহ্বায়ক মার্জানুল ইসলাম, সদস্য সচিব আইনুল ইসলাম, কার্যকরী কমিটির সদস্য গোলাম কিবরিয়া,রাসেল আহমদ,আমান হাসান সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

সারাদেশ বাসীকে শারদীয় দুর্গোৎসবে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন মির্জা আল মুরাদ বেগ

সারাদেশ বাসীকে শারদীয় দুর্গোৎসবে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন মির্জা আল মুরাদ বেগ


স্টাফ রিপোর্টারঃ আর.জে মিজানুর রহমান ইমনঃশারদীয় দুর্গোৎসব উপলক্ষে ময়মনসিংহ জেলা ও তারাকান্দা উপজেলা বাসী সহ সারা দেশের সকল হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের, মাননীয় গৃহায়ণ ও গণপূর্ত প্রতিমন্ত্রী জনাব শরীফ আহমেদ এমপি মহোদয়ের পক্ষ থেকে শারদীয় দুর্গোৎসবের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন, "সজীব ওয়াজেদ জয় পরিষদ" ময়মনসিংহ বিভাগীয় কমিটির সভাপতি মির্জা আল মুরাদ বেগ । শারদীয় দুর্গোৎসবের শুভেচ্ছা বার্তায় তিনি বলেন, শারদীয় দুর্গোৎসব শুধু বাঙ্গালী হিন্দু সম্প্রদায়ের জন্য নয়; বরং জাতি ধর্ম বর্ণ নির্বিশেষে আমাদের জাতীয় ঐক্য চেতনায় একটি মহা মিলনোৎসব ।বাংলাদেশ একটি সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির দেশ এখানে আবহমানকাল থেকে একসঙ্গে হিন্দু, মুসলমান, বৌদ্ধ, খ্রিস্টান এবং আদিবাসী ও উপজাতি সম্প্রদায়ের লোকেরা মিলেমিশে বসবাস করে আসছে । বিশ্বে এক অনন্য ইতিহাস যে দেশে ভূখণ্ডে একসঙ্গে নানা জাতি, নানা বর্ণের লোক এবং নানা ধর্ম-সংস্কৃতির লোকের বসবাস- সেটাই তাদের আসল পরিচয় । তাই তো প্রাচীনকাল থেকে আমরা পারস্পরিক সম্প্রীতির মিলবন্ধনে আবদ্ধ আছি । শাস্ত্র মতে দেবী দূর্গার আগমনের মধ্য দিয়ে পৃথিবীর সব দুঃখ বেদনা জড়া-জীর্ণতা, রোগ-ব্যাধি আর অন্যায়-অত্যাচার দূরীভূত হয় । তেমনি মানব জীবনে সুখ-শান্তি আর শুভ শক্তির উদ্ভাবন ঘটে । দূর্গাপূজার সার্বজনীন আবেদন হল, অসুর শক্তির বিনাস আর শুভ শক্তির উদ্বোধন ।


মানুষ যেন আজ অন্যায় অবিচার, কাম ক্রোধ লোভ  হিংসা বিদ্বেষে জর্জরিত, এই অশুভ শক্তি ও অমানবিক আচার-আচরণকে দূরীভূত করে সত্য সুন্দর ও ন্যায়ের পথে যেন জীবন-যাপন করতে পারে সেটাই এ দূর্গাপূজার মূল উদ্দেশ্য । প্রতি বছরের ন্যায় এ বছরও যথাযথ উৎসাহ-উদ্দীপনা ও ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্য, নানা অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে সাড়ম্বরে দূর্গাপূজা উদযাপিত হোক এমনটাই প্রত্যাশা করেন তিনি ।

সাতক্ষীরা'র তালায় প্রতিবন্ধী নারীকে বেদম প্রহারের অভিযোগ

সাতক্ষীরা'র তালায় প্রতিবন্ধী নারীকে বেদম প্রহারের অভিযোগ
প্রতিবন্ধী নারীকে বেদম প্রহার
আজহারুল ইসলাম সাদী, স্টাফ রিপোর্টারঃসাতক্ষীরা জেলার তালা উপজেলার এক প্রতিবন্ধী নারীকে বেদম প্রহারের অভিযোগ উঠেছে। জানা গেছে, ২১ অক্টোবর তালা উপজেলার  শালিখা গুচ্ছগ্রামের খুকি বেগম নামের, এক প্রতিবন্ধী নারীকে, কথাকাটাকাটির তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে, বাজারে প্রকাশ্যে টানাহ্যাঁচড়া করে, বেধড়ক মারপিট করে আহত করে, অচেতন অবস্থায় ফেলে রাখেন, স্থানীয়  মুড়াগাছা গ্রামের আব্দুল আজিজ সরদারের ছেলে, আবুল হোসেন। 
প্রহারকারী আবুল হোসেন
প্রহারের শিকার নারী, খুকি বেগম, তার স্বামী ও একমাত্র ছেলে সকলেই প্রতিবন্ধী।এলাকাবাসীসহ প্রতিবন্ধী নারীর পরিবার, এই প্রহারকারীর শাস্তি দাবী জানান।প্রহারকারী আবুল হোসেনের কাছে প্রহারের কারণ জানতে চাইলে, স্থানীয় প্রতিবাদী আরেক প্রতিবন্ধী যুবক শেখ সিরাজুল ইসলামকে, এলাকা ছেড়ে চলে  যাওয়ার হুমকি দেয়া হয়েছে বলে তিনি জানান।এসময় ঘটনাটি ওই প্রতিবাদকারী যুবক তাৎক্ষণিক তালা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি)কে মোবাইলে অবহিত করলে তিনি খেশরা পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ কে, দ্রুত ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দেন।


খেশরা পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মোঃ ইসমাইল হোসেন ঘটনাস্থলে এসে, আহত অবস্থায় খুকি বেগমকে উদ্ধার করে, চিকিৎসার জন্য তালা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে, পাঠানোর ব্যাবস্থা করেন।


২৩ অক্টোবর বিকালে, হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ আহত প্রতিবন্ধী নারী খুকি বেগমকে,  হাসপাতাল ত্যাগের ছাড় পত্র দেন।


চরম নির্যাতন ও শ্লীলতাহানীর শিকার খুকি বেগম  আর্তনাদ করে জানান, আমার উপর হামলা কারীর বিচার চাই?


শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত মামলার প্রস্ততি চলছিলো।

সারা দেশ বাসীকে শারদীয় দুর্গোৎসবে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন আর.জে ইমন

 সারা দেশ বাসীকে শারদীয় দুর্গোৎসবে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন আর.জে ইমন

আর.জে জান্নাত আক্তার মীম (তারাকান্দা) ময়মনসিংহ প্রতিনিধিঃ শারদীয় দুর্গোৎসব উপলক্ষে ময়মনসিংহ জেলা ও তারাকান্দা উপজেলা বাসী সহ সারা দেশের সকল হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের, মাননীয় গৃহায়ণ ও গণপূর্ত প্রতিমন্ত্রী জনাব শরীফ আহমেদ এমপি মহোদয়ের পক্ষ থেকে শারদীয় দুর্গোৎসবের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন, "সজীব ওয়াজেদ জয় পরিষদ" ও "জাতীয় সাংবাদিক কল্যাণ ফাউন্ডেশন" তারাকান্দা উপজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক আর.জে মিজানুর রহমান ইমন । শারদীয় দুর্গোৎসবের শুভেচ্ছা বার্তায় তিনি বলেন, শারদীয় দুর্গোৎসব শুধু বাঙ্গালী হিন্দু সম্প্রদায়ের জন্য নয়; বরং জাতি ধর্ম বর্ণ নির্বিশেষে আমাদের জাতীয় ঐক্য চেতনায় একটি মহা মিলনোৎসব ।
বাংলাদেশ একটি সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির দেশ এখানে আবহমানকাল থেকে একসঙ্গে হিন্দু, মুসলমান, বৌদ্ধ, খ্রিস্টান এবং আদিবাসী ও উপজাতি সম্প্রদায়ের লোকেরা মিলেমিশে বসবাস করে আসছে । বিশ্বে এক অনন্য ইতিহাস যে দেশে ভূখণ্ডে একসঙ্গে নানা জাতি, নানা বর্ণের লোক এবং নানা ধর্ম-সংস্কৃতির লোকের বসবাস- সেটাই তাদের আসল পরিচয় । তাই তো প্রাচীনকাল থেকে আমরা পারস্পরিক সম্প্রীতির মিলবন্ধনে আবদ্ধ আছি । শাস্ত্র মতে দেবী দূর্গার আগমনের মধ্য দিয়ে পৃথিবীর সব দুঃখ বেদনা জড়া-জীর্ণতা, রোগ-ব্যাধি আর অন্যায়-অত্যাচার দূরীভূত হয় । তেমনি মানব জীবনে সুখ-শান্তি আর শুভ শক্তির উদ্ভাবন ঘটে । দূর্গাপূজার সার্বজনীন আবেদন হল, অসুর শক্তির বিনাস আর শুভ শক্তির উদ্বোধন ।
মানুষ যেন আজ অন্যায় অবিচার, কাম ক্রোধ লোভ হিংসা বিদ্বেষে জর্জরিত, এই অশুভ শক্তি ও অমানবিক আচার-আচরণকে দূরীভূত করে সত্য সুন্দর ও ন্যায়ের পথে যেন জীবন-যাপন করতে পারে সেটাই এ দূর্গাপূজার মূল উদ্দেশ্য । প্রতি বছরের ন্যায় এ বছরও যথাযথ উৎসাহ-উদ্দীপনা ও ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্য, নানা অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে সাড়ম্বরে দূর্গাপূজা উদযাপিত হোক এমনটাই প্রত্যাশা করেন তিনি ।

হটাও জাসদ, বাচাও বিএনপি

হটাও জাসদ, বাচাও বিএনপি
সম্রাট হোসেন, শৈলকুপা (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধিঃ ঝিনাইদহ জেলার শৈলকুপা উপজেলা বি এন পির তিন গ্রুপ জয়ন্ত কুমার কুণ্ড, ওহাব ও ওসমান সাহেব এক হয়ে শৈলকুপা উপজেলা বিএনপি কে বাচাতে মরিয়া। এক সময় বি এন পি এর ঘাটি হিসাবে পরিচিত থাকলেও আজ ২০ বছর গ্রুপিং এর কারণে ক্ষত বিক্ষত বিএনপি কে ঢেলে সাজানোর জন্য আজ শৈলকুপা উপজেলা বিএনপির যুগ্ম আহাব্বায়ক ওসমান সাহেবের বাসায়, সাবেক সংসদ সদস্য আলহাজ্ব এম এ আব্দুল ওহাব সাহেব এর সভাপতিতে এই আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। 
এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক সাজ্জাদুর রহমান সাজ্জাদ,উপজেলা বিএনপি সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও বর্তমান কমিটির যুগ্ম আহ্বায়ক রাকিবুল হাসান খান দিপু, উপজেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক ফিরোজ আহমেদ, যুগ্ন আহবায়ক হিটু ইসলাম, সাবেক জেলা বিএনপির সহসভাপতি আসাদুজ্জামান আসাদ সহ, যুবদল, ছাত্রদল, স্বেচ্ছাসেবক দল ও শ্রমিক দলের ৩০০/৪০০ নেতৃবৃন্দ যোগদান করেন।
সমাবেশে বক্তারা বলেন শৈলকুপা তৃণমূল বিএনপিকে ধ্বংস করার জন্য বিএনপি কেন্দ্রীয় কমিটির মানবাধিকার বিষয়ক সম্পাদক সাবেক জাসদ নেতা কে দায়ি করেন। যে কি না কখনোই ধানের শীষে ভোট দেয়নি। সে কি করে বিএনপির দলে যোগ দিলো বা সদস্য হলো তা কেও জানেন বলে সমাবেশে বক্তারা বলেন। আসাদ সাহেব বিভিন্ন ইউনিয়ন থানা ও পৌর কমিটি জাসদের লোকজন দিয়ে গঠন করছেন। এরই প্রতিবাদে বক্তারা বলেন আজ থেকে শৈলকুপা আসাদ সাহেবকে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করা হলো।
সমাবেশে বক্তারা বলেন এখন থেকে আসাদ সাহেব যেখানে যেখানে কমিটি ঘোষণা দেবে,।তারাও পাল্টা কমিটি ঘোষণা দেবেন। এবং আগামী ৭ দিনের মধ্যে ১৪ টি ইউনিয়ান ও ১টি পৌরসভা কমিটি গঠন করবেন বলে সমাবেশে বক্তারা উল্লেখ্য করেন। সকাল বক্তারা একটাই আওয়াজ তোলেন হটাও জাসদ, বাঁচাও বিএনপি।

নিম্মচাপ মোকাবেলায় প্রস্তুত রেড ক্রিসেন্ট চট্টগ্রাম

নিম্মচাপ মোকাবেলায় প্রস্তুত রেড ক্রিসেন্ট চট্টগ্রাম

বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির ম্যানেজিং বোর্ড
রিয়াজুল ইসলাম রিজভী, চট্টগ্রাম ব্যুরো প্রধানঃ বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট নিম্মচাপ মোকাবেলায় বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি চট্টগ্রাম জেলা ও সিটি ইউনিটের উদ্যোগে যুব রেড ক্রিসেন্ট চট্টগ্রামের বাস্তবায়নে বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির ম্যানেজিং বোর্ড সদস্য ও জেলা রেড ক্রিসেন্টের ভাইস চেয়ারম্যান ডাঃ শেখ শফিউল আজম ও সিটি রেড ক্রিসেন্টের ভাইস চেয়ারম্যান এম.এ.ছালাম এর তত্ত্বাবধানে প্রস্তুত রয়েছে যুব স্বেচ্ছাসেবকরা। নিম্মচাপ সর্ম্পকে প্রতিনিয়ত জনসাধারণের কাছে তথ্য প্রদান কার্যক্রম পরিচালনা করা হয়। চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের কন্ট্রোল রুমে প্রশাসক খোরশেদ আলম সুজন এর সাথে রেড ক্রিসেন্ট চট্টগ্রামের প্রতিনিধিদের সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় উপস্থিত ছিলেন সিটি রেড ক্রিসেন্টের সেক্রেটারী আব্দুল জব্বার, যুব রেড ক্রিসেন্ট, চট্টগ্রামের যুব প্রধান মোঃ ইসমাইল হক চৌধুরী ফয়সালসহ যুব স্বেচ্ছাসেবকরা।

নিম্মচাপ মোকাবেলার অংশ হিসেবে যুব স্বেচ্ছাসেবকদের দক্ষতার বৃদ্ধির লক্ষ্যে যুব রেড ক্রিসেন্ট কার্যালয়ে এর সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। নিম্মচাপ মোকবেলার লক্ষ্যে নিজস্ব প্রস্তুতি সভার সিদ্ধান্ত মোতাবেক মাইকিং এর মাধ্যমে সচেতনতা সহায়তা ও পরবর্তী উদ্ধার, ত্রাণ বিতরণ ও পুর্নবাসন এর জন্য রেড ক্রিসেন্ট চট্টগ্রাম কাজ করবে বলে এ সিদ্ধান্ত গৃহিত হয়। যেকোন প্রাকৃতিক বিরূপ পরিস্থিতিতে উপকূলবর্তী এলাকার উপজেলা পর্যায়ে বিভিন্ন স্কুল কলেজ, মাদ্রাসা ও কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের যুব রেড ক্রিসেন্ট স্বেচ্ছাসেবকদের আন্দরকিল্লাস্থ যুব কার্যালয়ের নির্দেশনা মোতাবেক দুর্যোগ মোকাবেলা করার জন্য বলা হয়। ইতিমধ্যে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসন সহ বিভিন্ন সরকারি বেসরকারি সংস্থার সাথে সমন্বয় সভা সম্পন্ন করে ও রেড ক্রিসেন্ট চট্টগ্রামের প্রস্তুতি সম্পর্কে জানানো হয়।

শৈলকুপার কুমার নদের নাগিরাট ঘাটে একটি ব্রীজের অভাবে ৫০ গ্রামের মানুষের দূর্ভোগ

শৈলকুপার কুমার নদের  নাগিরাট ঘাটে একটি ব্রীজের অভাবে ৫০ গ্রামের মানুষের দূর্ভোগ

নাগিরাট ঘাটে একটি ব্রীজের অভাবে ৫০ গ্রামের মানুষের দূর্ভোগ
সম্রাট হোসেন, শৈলকুপা (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধি : ঝিনাইদহ জেলার শৈলকুপা উপজেলার কুমার নদের নাগিরাট ঘাটে একটি ব্রীজের অভাবে ৫০ গ্রামের মানুষের দূর্ভোগ দেখা দিয়েছে। এক সময় নদী কেন্দ্রিক ব্যবসা বন্দর ছিল নাগিরাট বাজার।নদের নাব্যতা সংকট ও একটি ব্রীজের অভাবে নাগিরাট বাজার তার যৌবন হারিয়েছে। এখানে একটি ব্রীজ এলাকার জনগনের দীর্ঘদিনের দাবী। নাগিরাট বাজারে একটি ব্রীজ নির্মাণ হলে এলাকার অর্থনৈতিক উন্নয়নসহ জনগনের দূর্ভোগ কমবে বলে এলাকাবাসীরা দীর্ঘ দিন  দাবী জানিয়ে আসছে।

সরেজমিনে দেখা যায়, নাগিরাট বাজারে বর্তমানে একটি খেয়া ঘাট রয়েছে। বর্ষা মৌসুমে জনসাধারন নদী পারাপারের জন্য নৌকা থাকলেও বর্তমানে পানি কম থাকার কারনে  স্কুল কলেজ ও মাদ্রাসার শিক্ষার্থী সহ  জনসাধারন জীবনের  ঝুঁকি নিয়ে বর্তমানে  বাঁশের সাকো দিয়ে নদী পারাপার হচ্ছে। বর্ষা মৌসুমে পানিতে নদী  পরিপূর্ন হলে খেয়া  নৌকা ছাড়া পার  হবার কোন উপায় থাকেনা। প্রতি দিন এই ঘাট দিয়ে স্কুল, কলেজ, বিশ^বিদ্যালয়ের ছাত্র ছাত্রীরাসহ হাজার হাজার জনসাধারন নদী পার হয়। ইতি পূর্বে  এই ঘাট দিয়ে খেয়া  নৌকা পার হতে গিয়ে মৃত্যেুর ঘটনা ঘটেছে একাধিকবার।
 
জনসাধারণের মালামাল নিয়ে পার হতে হিসশিম খেতে হয়, রীতিমত গলার কাটা হয়ে দাড়িয়েছে ঘাটটিতে ব্রীজ না থাকায়। এইঘাট দিয়ে নদীর উত্তরে দামুকদিয়া, মাধবপুর, দোহা-নাগিরাট, শিতালী, দলিলপুর, আওদা, কমলনগর, বগুড়া, লাঙ্গলবাঁধ, নন্দিরগাতি, ধাওড়া, ধলহরাচন্দ্র চরধলহরা, বরিয়া, ছাঁইভাঙ্গা, কুশবাড়িয়া, পাইকেনপাড়া, সহ আরো বেশকিছু গ্রাম এবং দক্ষিণে রয়েড়া, আড়–য়াকান্দি, ভান্ডারীপাড়া, বকশীপুর, শেখড়া, গোপালপুর, বাগুটিয়া, নাকোইল, ফলিয়া, রঘুনন্দনপুর, আশুরহাট, মনোহরপুর, নিত্যানন্দপুর, সাবাসপুর, হাটফাজিলপুর সহপ্রায় ৫০ গ্রামের লোকজন পার হয়। ব্রীজ না থাকায় পন্য পরিবহন ব্যয় বেড়েছে, ১ মণ মালামাল বাজারজাত করতে পরিবহন খরচ হয় ৫০-৬০ টাকা । অথচ ব্রীজ হলে তা ২০ টাকায় বাজারজাত করা সম্ভব বলে মনে করে ভুক্তভোগীরা।

নাগিরাট গ্রামের মো: নজরুল ইসলাম বলেন, কৃষি অধ্যুষিত প্রায় ৪০-৫০গ্রামের লোকজন চলাফেরা করে এই ঘাট দিয়ে, তাই জরুরী হয়ে পড়েছে নাগিরাট ঘাটে একটি ব্রীজ। মাধবপুর গ্রামের ডা: মাসুদ ও তাপস বলেন, নাগিরাট বাজারে একটি ব্রীজ এখন সময়ের দাবী। এখানে একটি ব্রীজ হলে অবহেলিত ৪০-৫০ গ্রামের মানুষ উপকৃত হবে।  এব্যাপারে খেয়া ঘাটের  দায়িত্বে থাকা মাঝি  লাড্ডু কুমার জানান তার বাপ দাদুরা নৌকায় জনসাধারন কে পারাপার করত আমরা সেটা ধরে রেখেছি ।

তবে সরকারী ভাবে এ খেয়া ঘাট বন্ধোবস্ত নেওয়া হয়না । প্রতিদিন ২/৩শ টাকা আয় হয় তাতে কোন রকম পরিবারের সদস্যদের নিয়ে জীবন যাপন করি । এলাকাবাসীরা  নাগিরাট বাজারের খেয়া ঘাটে একটি ব্রীজ নির্মানের জন্য সরকারের উর্দ্ধোতন কর্তৃপক্ষের নিকট  জোর দাবী  জানান ।

মোংলা বন্দরে ৪ নং হুশিয়ারী সংকেত!

মোংলা বন্দরে ৪ নং হুশিয়ারী সংকেত!


প্রচন্ড বৃষ্টিতে জলাবদ্ধতায় বন্যা পরিস্থিতির সৃষ্টি

মোংলা প্রতিনিধিঃমোংলায় প্রচন্ড বৃষ্টিতে জলাবদ্ধতায় বন্যা পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। গত দুই দিন ধরে বৃষ্টি হলেও বিশেষ করে শুক্রবার ভোর রাত থেকে শুরু হওয়া বৃষ্টিতে পৌর শহরসহ উপজেলার নিম্মাঞ্চল তলিয়ে গেছে। বৃষ্টির সাথে বয়ে যায় ঝড়ও। বৃ্ষ্টির পানি জমে তা মুহুর্তের মধ্যে উঠে গেছে বাড়ী ঘরে। তাই রান্না, থাকা, খাওয়া ও গবাদি পশু রাখা নিয়ে দুর্ভোগে পড়েছে এখানকার বাসিন্দারা। বৃষ্টিতে তলিয়ে ও মাছ ভেসে এ এলাকার এক-তৃতীয়াংশ চিংড়ি ঘের ক্ষতির সম্মুখীন হয়ে পড়েছে। 

এদিকে নিম্নচাপের প্রভাবে ৪ নং হুশিয়ারী সংকেত জারির পর থেকে দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়া বিরাজ করছে। ঝড়-বৃষ্টির মধ্যে জাহাজে গ্যাং না যাওয়ায় এবং বৈরী হাওয়ায় মোংলা বন্দরে পণ্য ওঠানামার কাজ বন্ধ রয়েছে। ৪ নং সংকেত জারির পর স্থানীয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে কন্ট্টোল রুম খোলা হয়েছে। তবে ভোর রাত থেকে শুরু হওয়া ঝড়-বৃষ্টিতে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ এখনও স্থানীয় প্রশাসনের হাতে পৌঁছায়নি, খোঁজ খবর নেয়া হচ্ছে।

ঝিনাইদহে ডিপ্লোমা কৃষিবিদ দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল

 ঝিনাইদহে ডিপ্লোমা কৃষিবিদ দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল
আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি: ঝিনাইদহে ডিপ্লোমা কৃষিবিদ দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার বিকেলে ডিপ্লোমা কৃষিবিদ ইন্সটিটিউশন বাংলাদেশ ঝিনাইদহ জেলা শাখারআয়োজনে এ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে ডিপ্লোমা কৃষিবিদ ইন্সটিটিউশন জেলা শাখার সভাপতিখাইরুল ইসলামের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা কৃষকলীগের সভাপতি সাজেদুল ইসলাম সোম।
 
বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা কৃষকলীগের সাধারণ সম্পাদক আশরাফুল আলম। এছাড়াও অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ডিপ্লোমা কৃষিবিদ ইন্সটিটিউশন জেলা শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক রাজু আহমেদ, অর্থ সম্পাদক মিলন কুমার ঘোষ, দপ্তর সম্পাদক মেসবাহ আহমেদ, প্রচার ও প্রকাশনা ও তথ্য বিষয়ক সম্পাদক শামীম হোসেন প্রমুখ।
 
অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন ডিপ্লোমা কৃষিবিদ ইন্সটিটিউশন জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক কুরবান আলী। আলোচনা শেষে কেক কেটে দিবসটি উদযাপন করা হয়। পরে দেশ ও জাতীর মঙ্গল কামনায় দোয়া মোনাজাত করা হয়।

শারদীয় দুর্গোৎসবে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন কাজল সরকার

শারদীয় দুর্গোৎসবে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন কাজল সরকার
আর.জে মিজানুর রহমান ইমন : নিজস্ব প্রতিবেদক :শারদীয় দুর্গোৎসব উপলক্ষে ময়মনসিংহ জেলা ও তারাকান্দা উপজেলা বাসী সহ সারা দেশের সকল হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের, মাননীয় গৃহায়ণ ও গণপূর্ত প্রতিমন্ত্রী জনাব শরীফ আহমেদ এমপি মহোদয়ের পক্ষ থেকে শারদীয় দুর্গোৎসবের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন "বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবকলীগ" তারাকান্দা উপজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক এবং ০৬নং ঢাকুয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী কাজল সরকার । শুভেচ্ছা বার্তায় তিনি বলেন, শারদীয় দুর্গোৎসব শুধু বাঙ্গালী হিন্দু সম্প্রদায়ের জন্য নয়; বরং জাতি ধর্ম বর্ণ নির্বিশেষে আমাদের জাতীয় ঐক্য চেতনায় এটি একটি মহা-মিলনোৎসব । বাংলাদেশ একটি সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির দেশ এখানে আবহমানকাল থেকে একসঙ্গে হিন্দু, মুসলমান, বৌদ্ধ, খ্রিস্টান এবং আদিবাসী ও উপজাতি সম্প্রদায়ের লোকেরা মিলেমিশে বসবাস করে আসছে । 

বিশ্বে এক অনন্য ইতিহাস যে দেশে যে ভূখণ্ডে একসঙ্গে নানা জাতি, নানা বর্ণের লোক এবং নানা ধর্ম-সংস্কৃতির লোকের বসবাস- সেটাই আমাদের আসল পরিচয় । তাই তো প্রাচীনকাল থেকে আমরা পারস্পরিক সম্প্রীতির মিলবন্ধনে আবদ্ধ আছি । শাস্ত্র মতে দেবী দূর্গার আগমনের মধ্য দিয়ে পৃথিবীর সব দুঃখ বেদনা জড়া-জীর্ণতা, রোগ-ব্যাধি আর অন্যায়-অত্যাচার দূরীভূত হয়, তেমনি মানব জীবনে সুখ-শান্তি আর শুভ শক্তির উদ্ভাবন ঘটে । দূর্গাপূজার সার্বজনীন অবদান হল, অসুর শক্তির বিনাস আর শুভ শক্তির উদ্বোধন ।

মানুষ যেন আজ অন্যায় অবিচার, কাম ক্রোধ লোভ  হিংসা বিদ্বেষে জর্জরিত, এই অশুভ শক্তি ও অমানবিক আচার-আচরণকে দূরীভূত করে সত্য সুন্দর ও ন্যায়ের পথে যেন জীবন-যাপন করতে পারে সেটাই এ দুর্গাপূজার মূল উদ্দেশ্য । প্রতি বছরের ন্যায় এ বছরও যথাযথ উৎসাহ-উদ্দীপনা ও ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্য, নানা অনুষ্ঠানাচারের মধ্য দিয়ে সাড়ম্বরে দূর্গাপূজা উদযাপিত হোক, এমনটাই প্রত্যাশা করেন তিনি ।

নড়াইলে চিত্রার তীরে ওয়াকওয়ে,পানি নিষ্কাশন ও বর্জ্য ব্যবস্থাপনার পরিকল্পনা মতবিনিময় সভা

নড়াইলে চিত্রার তীরে ওয়াকওয়ে,পানি নিষ্কাশন ও বর্জ্য ব্যবস্থাপনার পরিকল্পনা মতবিনিময় সভা
মতবিনিময় সভা
মো: আজিজুর বিশ্বাস স্টাফ রিপোর্টার নড়াইল।। নড়াইল শহরের কোল ঘেঁষে বয়ে যাওয়া চিত্রা নদীর তীরে ওয়াকওয়ে নির্মাণ, নড়াইল পৌরসভার পানি নিষ্কাশন ও বর্জ্য ব্যবস্থাপনা পরিকল্পনা প্রণয়নে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার ২২/ ১০/ ২০২০। দুপুরে মাশরাফী বিন মোর্ত্তজার হাতে গড়া সেবামূলক প্রতিষ্ঠান নড়াইল এক্সপ্রেস ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।জেলা প্রশাসক আনজুমান আরার সভাপতিত্বে সভায় ভার্চুয়াল মাধ্যমে যুক্ত হন প্রধান অতিথি নড়াইল-২ আসনের সংসদ সদস্য নড়াইল এক্সপ্রেস ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান মাশরাফী বিন মোর্ত্তজা। 

এই সভায় অন্যান্যের মধ্যে দিকনির্দেশনামূরক বক্তব্য দেন নড়াইল পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন (পিপিএম বার),অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোঃ ইয়ারুল ইসলাম, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সদর উপজেলা চেয়ারম্যান নিজামউদ্দিন খান নিলু, নড়াইল গণপূর্ত বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মোহাম্মদ নাহিদ পারভেজ, সড়ক ও জনপথ বিভাগের উপ বিভাগীয় প্রকৌশলী মোঃ ওমর আলী, পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী মোঃ ওয়াজেদ আলী চাকলাদার, নড়াইল পৌরসভার সহকারী প্রকৌশলী মোঃ সুজন আলী, উপজেলা জনস্বাস্থ্য প্রকৌশলী মোঃ মাহমুদুল আলা, নড়াইল এক্সপ্রেস ফাউন্ডেশনের সাধারণ সম্পাদক তরিকুল ইসলাম অনিক, নড়াইল প্রেসক্লাবের সভাপতি এনামুল কবির টুকু প্রমুখ। মতবিনিময় সভায় রাজধানী ঢাকা থেকে আগত নগর পরিকল্পনাবিদ রাসেল কবির নড়াইল পৌরসভার পানি নিষ্কাশন, বর্জ্য ব্যবস্থাপনা এবং চিত্রা নদীর তীরে ওয়াকওয়ের পরিকল্পনা উপস্থাপন করেন। চিত্রা নদীর তীরে সাড়ে ৪ কিঃমিঃ ওয়াকওয়ে, শহরে অত্যাধুনিক পানি নিষ্কাশন ও বর্জ্য ব্যবস্থাপনা গড়ে তোলার জন্য একটি নকশা প্রণয়ন এবং তা দ্রুত বাস্তবায়নের কথা বলেন।

প্রসঙ্গত: নড়াইলের চিত্রা নদীর কোলঘেষে ওয়াকওয়ে নির্মানের জন্য নড়াইলবাসী দীর্ঘদিন ধরে দাবি তুলে আসছে। একটি মহল নদীর পাড়ে অবৈধভাবে বাড়িঘর নির্মাণ করে দখল করে রেখেছে।নড়াইল জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে উচ্ছেদের তেমন কোন ব্যবস্থা না নেয়ায় ওয়াকওয়ে নির্মানের বিষয়টি বাস্তবায়ন হচ্ছে না। অপরদিকে নড়াইল পৌর এলাকার অধিকাংশ এলাকায় ড্রেনেজ ব্যবস্থা না থাকায় বছরের ৫/৭ মাস ধরে পানিবন্দী জীবন যাপন করতে কয়েকশত পরিবারের। নড়াইল পৌরসভা একটি প্রথম শ্রেণীর পৌরসভা হলেও ড্রেনেজ ব্যবস্থা না থাকায় মানুষ দীর্ঘদিন ধরে দুর্ভোগের শিকার হচ্ছে।এসব দুর্ভোগ থেকে পরিত্রাণ পাবেন বলে আশাবাদী পৌরবাসী।

লাকসামে বিরামহীন ভাবে মুষলধারায় বৃষ্টি ফলে জনসাধারণ গৃহবন্দী

লাকসামে  বিরামহীন ভাবে মুষলধারায় বৃষ্টি ফলে জনসাধারণ  গৃহবন্দী


বিরামহীন বৃষ্টিতে জনজীবন বিপর্যস্ত
মোঃ রবিউল হোসাইন সবুজ, লাকসাম কুমিল্লা প্রতিনিধ:সারা বাংলাদেশের নেয়, কুমিল্লা লাকসামেও  বিরামহীন ভাবে মুষলধারে বৃষ্টি হচ্ছে। এতে জনসাধারণ চরম বিপাকে  পড়ছে। 


এ বৃষ্টি বৃহস্পতিবার থেকে চলছে।  মুষলধারে বৃষ্টি ফলে বেড়ে গেছে খাল,বিল,, মাঠ-ঘাটে,নদ-নদীতে পানি। এভাবে যদি আরো কিছুদিন এভাবে টানা বৃষ্টি হয়। তাহলে আমন ধান ও শাকসবজি  ক্ষতির সম্মুখীন পড়বে এটাই ধারণা করেন সংশ্লিষ্ট স্হানীয় কৃষকরা। টানা বৃষ্টির ফলে নিত্যদিন শ্রমজীবিরা কর্মহীন হয়ে পড়ছে। এছাড়াও সরকারি ও বেসরকারি, কর্মীরা তাদের গন্তব্য স্হানে যতাসময়ে পোঁছাতে কষ্ট হচ্ছে। 

অন্যদিকে,কুমিল্লা- নোয়াখালী আঞ্চলিক রোডের কাজ চলাতে গাড়ি চালাকগন পড়েছে বিপাকে। আর রাস্তায় উঁচু-নিচু খাদ-খনন  হওয়ার কারণে এ যেনো মরণ ফাঁদ। 

ঢাকা টু নোয়াখালী হিমাচল এক্সপ্রেসের বাস চালক জানান, আমরা গাড়ি নিয়ে খুব বিপদজনক ভাবে গাড়ী চালাচ্ছি। সামান্য কিছু হলে যেকোনো সময় বড় ধরনের সড়ক দুর্ঘটনা হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। 

লাকসামতে আকাশ মেঘে ঢাকা রয়েছে। হালকা বা ভারি বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। আকাশ থেকে কখনো কখনো গুড়ি গুড়ি বৃষ্টি আবার কখনো কখনো ভারি বৃষ্টি বর্ষণ হচ্ছে। মাঝে মাঝে দমকা হাওয়া সেই সাথে হালকা ঠান্ডা লাগছে। পরিবেশটা যেন জনজীর্ণ হয়ে পড়ছে। 

বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তর  থেকে জানা যায়, বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট গভীর নিম্ন চাপের কারনে একাধারে বৃষ্টি হচ্ছে। আবহাওয়া অধিদপ্তর থেকে এটা জানানো হয়েছে বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট নিম্ন চাপের কারনে  হালকা  বা ভারি বৃষ্টি হচ্ছে এবং আরে কিছুদিন হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানানো হয়েছে। সেই সাথে সকল সমুদ্র বন্দর সমূহকে  ৪ নম্বর স্হানীয় হুশিয়ারি সংকেত দেখিয়ে যতে বলা হয়েছে। মংলা ও পায়রা সমুদ্র বন্দরের সকল নৌযানচল, জাহাজ, লঞ্চ টার্মিনালকে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত উপকুলের নিরাপদ স্হানে অবস্হান করার জন্য বলা হয়েছে।

বড়লেখায় ভূমিকম্প ও অগ্নিকান্ড বিষয়ক সচেতনতামূলক সভা

বড়লেখায় ভূমিকম্প ও অগ্নিকান্ড বিষয়ক সচেতনতামূলক সভা

আকরাম হোসাইন মৌলভীবাজার জেলা প্রতিনিধি :: মৌলভীবাজারের বড়লেখা উপজেলার শুক্রবার (২৩ অক্টোবর) ১টা থেকে ২টা পর্যন্ত পরিচালন ও উন্নয়ন প্রকল্প ও জাইকার অর্থায়নে উপজেলা পরিষদ।বড়লেখার আয়োজনে পাহাড়ী বন্যা ও ধ্বস,বজ্রপাত, অগ্নিকান্ড ও ভূমিকম্প মোকাবিলায় করণীয় বিষয়ক প্রশিক্ষণে প্রশিক্ষক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার,বড়লেখা ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ শামীম আল ইমরান । ৪টি ব্যাচে ৩০ জন করে মোট ১২০ জন প্রশিক্ষণার্থী এই প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণ করেন।

নাগরপুরে বাংলাদেশ হোমিওপ্যাথিক পরিষদের পরিচিতি সভা অনুষ্ঠিত

নাগরপুরে বাংলাদেশ হোমিওপ্যাথিক পরিষদের পরিচিতি সভা অনুষ্ঠিত

হাসান সাদী,নাগরপুর(টাংগাইল)প্রতিনিধি: বাংলাদেশ হোমিওপ্যাথিক পরিষদ, নাগরপুর উপজেলা শাখা নব নির্বাচিত সভাপতি প্রভাষক ডা.এম.এ.মান্নান এর সভাপতিত্বে নব নির্বাচিত সাধারন সম্পাদক ডা.মন্জুরুল ইসলামের পরিচালনায় কমিটি অনুমোদন হওয়ার পর নব নির্বাচিত নেত্ববৃন্দের নিয়ে আজ শুক্রবার, ২৩ অক্টোবর ২০২০ খ্রি.বেলা ৩.০০ টায় মুকতাদির হোমিও চিকিৎসা কেন্দ্র,নাগরপুরে পরিচিতি ও মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। নব নির্বাচিত সভাপতি ও সাধারন সম্পাদক উপস্থিত সকল নেত্ববৃন্দকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানায়।

প্রাকৃতিক দুর্যোগ অথাৎ বৃষ্টি থাকায় সকল নেত্ববৃন্দ উপস্হিতি হতে না পারায় অল্প সময়ের মধ্যে সভার কাজ সমাপ্তি ঘোষনা করেন সভাপতি প্রভাষক ডা.এম.এ.মান্নান।

আজকে পরিচিতি ও মতবিনিময় সভা শুরু হয় প্রবিত্র কোরআন পাঠের মাধ্যমে। প্রবিত্র কুরআন পাঠ করেন হাফেজ মাসুদ হাসান। উপস্হিতি সকলের পরামর্শক্রমে আগামী ৩০ অক্টোবর শুক্রবার বেলা ৩.০০ টায় মুকতাদির হোমিও চিকিৎসা কেন্দ্রে পূর্নরায় মতবিনিময় ও পরিচতি সভা করার জন্য সিদ্ধান্ত নেয়।আজকের মতবিনিময় ও পরিচিতি সভায় উপস্হিতি থেকে নিজেদের মতামত প্রকাশ করেন নব মনোনিত মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক ডা.মো.ছিদ্দিক মিয়া,অর্থ সম্পাদক ডা.মো.আ.ওহাব, ক্রিড়া বিষয়ক সম্পাদক ডা.রিপন চন্দ্র এবং ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক ডা.মো.রফিকুল ইসলাম প্রমুখ।

সেন্টমার্টিনে আটকা পড়েছেন ৪শতাধিক পর্যটক

সেন্টমার্টিনে আটকা পড়েছেন ৪শতাধিক পর্যটক

সেন্টমার্টিনে আটকা পড়েছেন ৪শতাধিক পর্যটক

কক্সবাজার প্রতিনিধিঃ বৈরী আবহাওয়ায় সৃষ্টি হওয়া লঘুচাপের কারণে টেকনাফ-সেন্টমার্টিনে সকল নৌযান চলাচল বন্ধ রয়েছে। আবহাওয়া অধিদফতেরর পক্ষ থেকে সামুদ্রিক বিপদ সংকেত জারি করায় সেন্টমার্টিন থেকে নৌযান ছাড়েনি কর্তৃপক্ষ। এতে প্রবাল দ্বীপ সেন্টমার্টিনে চার শতাধিক পর্যটক আটকা পড়েছেন।আবহাওয়া অধিদফতর সূত্রে জানা গেছে, বঙ্গোপসাগরে সৃষ্টি হওয়া লঘুচাপের কারণে উপকূলীয় এলাকায় ঝড়ো হাওয়াসহ ভারি বৃষ্টি হচ্ছে। এ জন্য সমুদ্রবন্দরে ৩ নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে। জানমালের নিরাপত্তার স্বার্থে নৌযান বন্ধ রাখতে বলা হয়েছে।

এ বিষয়ে সেন্টমার্টিন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. নুর আহমেদ বলেন, বৈরী আবহাওয়ার আশংকা থাকায় বুধবার পুর্যটকদের সেন্টমার্টিন দ্বীপ হতে ফিরে যেতে মাইকিং করা হয়েছিল। অনেকে তা গুরুত্ব দেয়নি। এ কারণে অনেকে এখানে আটকা পড়েছেন। দ্বীপে আটকা পড়া পর্যটকদের যাতে কোন অসুবিধা না হয় সে ব্যবস্থা করা হচ্ছে বলে জানান তিনি।সেন্টমার্টিন পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ জানান, সেন্টমার্টিনে আটকে পড়া পর্যটকদের খোঁজ-খবর রাখতে দ্বীপের পুলিশ ফাঁড়ির সদস্যরা তাদের পাশে রয়েছেন।সেন্টমার্টিন ইউপি সদস্য আবদুর রহমান বলেন, বৈরী আবহাওয়ার কারণে সেন্টমার্টিন এ সকল নৌযান বন্ধ রয়েছে। ভ্রমণে আসা কয়েক শতাধিক পর্যটক সেন্টমার্টিনে আটকা পড়েছে। অবস্থানরত হোটেল মোটেল মালিকদের সাথে যোগাযোগ করে আগত পর্যটকদের যাতে সমস্যা না হয় সে দিকে লক্ষ্য রাখতে অনুরোধ করা হয়েছে।

টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. সাইফুল ইসলাম বলেন, হঠাৎ করে সাগর  উত্তাল ও বৈরী আবহাওয়ার কারণে সেন্টমার্টিনে আটকেপড়া পর্যটকরা যাতে চলাচল ও খাওয়া দাওয়ায় হয়রানির শিকার না হয়, সেদিকে লক্ষ্য  রাখা হচ্ছে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে পর্যটকদের নিরাপদে ফিরে আনা হবে।

জবিতে দুইদিনের দুর্গাপূজোর ছুটিতে অনলাইন ক্লাস বন্ধ

 জবিতে দুইদিনের দুর্গাপূজোর ছুটিতে অনলাইন ক্লাস বন্ধ
জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়, ছবি-কপোতাক্ষ নিউজ

জবি প্রতিনিধিঃ সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব আসন্ন দুর্গাপূজা উপলক্ষে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে (জবি) ২৩/১০/২০২০ শুক্রবার থেকে ২৬/১০/২০২০ তারিখ সোমবার পর্যন্ত সকল অনলাইন ক্লাস বন্ধ থাকবে। দুর্গাপূজা উপলক্ষে আগামী ২৫ ও ২৬ অক্টোবর বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল ক্লাস, বিভাগ ও প্রশাসনিক দপ্তরও বন্ধ থাকবে।বৃহস্পতিবার (২২ অক্টোবর) উপাচার্য মহোদয়ের আদেশক্রমে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার প্রকৌশলী মো. ওহিদুজ্জামান স্বাক্ষরিত দুইটি পৃথক পৃথক বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়।বিশ্ববিদ্যালয়ের দায়িত্বরত নিরাপত্তা প্রহরী, নৈশ প্রহরী, পাম্প অপারেটর ও ইলেক্ট্রিশিয়ান যথাযথভাবে নিজ নিজ দায়িত্ব পালন করবেন এবং নিরাপত্তার দায়িত্বে কর্মরত কর্মকর্তা সার্বিকভাবে ক্যাম্পাসের নিরাপত্তার বিষয়টি তদারকি ও নিশ্চিত করবেন বলে বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়।বৃহস্পতিবার (২২ অক্টোবর) শারদীয় দুর্গাপূজার মূল আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়েছে। উল্লেখ্য, বিশ্বব্যাপী করোনা মহামারির কারণে এবার জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে দুর্গাপূজার আয়োজন করা হয়নি।

মুছাপুর কওমি মাদ্রাসার অভিভাবক সমাবেশে এমপির প্রতিশ্রুত ভবন ও রাস্তা নির্মানের জোর দাবী

 মুছাপুর কওমি মাদ্রাসার অভিভাবক সমাবেশে এমপির প্রতিশ্রুত ভবন ও রাস্তা নির্মানের জোর দাবী

মাঈন উদ্দিন আল আকাশ, সন্দ্বীপ প্রতিনিধি | চট্টগ্রামের দ্বীপ উপজেলা সন্দ্বীপের মুছাপুর ইউনিয়স্থ ৭নং ওয়ার্ডের আলহাজ্ব মাহফুজুর রহমান মিতা কওমি মাদ্রাসার শিক্ষার্থীদের পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ ও অভিবাবক সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।গত ২২ অক্টোবর ২০২০ ইং বৃহঃস্পতি বার সকাল দশ ঘটিকায় উক্ত মাদ্রাসার শিক্ষার্থীদের বেশির ভাগ শিক্ষার্থী কৃতিত্বের সাথে ভাল ফলাফল অর্জন করায় মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ উক্ত অনুষ্ঠানটির আয়োজন করে।অনুষ্ঠানে উপস্থিত গন্যমান্য ব্যক্তিদের ভাষ্যমতে, সন্দ্বীপের প্রত্যেকটি অঞ্চলে শিক্ষার আলো ছড়িয়ে পড়লেও এই এলাকাটি ছিল ব্যতিক্রম। তাই এই অঞ্চলের সন্তানদের সাধারন  শিক্ষার পাশাপাশি  ধর্মীয় শিক্ষায় আলোকিত করতে দ্বীপরত্ন আলহাজ্ব মাহফুজুর রহমান মিতা অত্র এলাকায় এই  কওমি মাদ্রাসা প্রতিষ্ঠা করেন।মাদ্রাসা প্রতিষ্ঠার পর থেকে এখন পর্যন্ত মোট ৮০ জন শিক্ষার্থী পড়া লেখা করছে,আজ পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ করার সময় সেরা শিক্ষার্থীদের কে নগদ টাকা সহ বিশেষ উপহার প্রদান করা হয়,যাতে তারা লেখা পড়ার প্রতি মনোযোগী হয় ও আগ্রহ বাড়ে।

উক্ত অনুষ্ঠানে  মাদ্রাসার পরিচালক মাওলানা নাজিমুদ্দীন ভুঁইয়া বলেন, মাদ্রাসার শিক্ষার্থীদের আধুনিক শিক্ষায় শিক্ষিত করার লক্ষে মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষের পাশা পাশি অভিবাবকদের ও সচেতন হতে হবে।ছেলে মেয়েদের লেখা পড়ার দিকে খেয়াল রাখতে হবে।

এছাড়া উক্ত মাদ্রাসার পরিচালনা কমিটির সাধারণ সম্পাদক মোঃ আনোয়ার হোসেন বলেন,দ্বীপ রত্ন মাহফুজুর রহমান মিতা মাদ্রাসা প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে এই অঞ্চলের মানুষের কাছে অনেক প্রশংসনীয় হয়েছেন।মাদ্রাসার ছেলে মেয়েদের  নিরাপদ পানির জন্য একটি ফিল্টার স্থাপন করে সুপেয় পানির ব্যবস্থা করেছেন।আমাদের মাদ্রাসার শিক্ষার্থীরা বর্তমানে টিন শেড ঘরে লেখা পড়া করে আসছে, এতে তাদের শিক্ষার ক্ষেত্রে অনেক ব্যাঘাত ঘটছে, তাই আমি এই মাদ্রাসার সম্মানিত সভাপতি জ্বনাব জসিম উদ্দিন ভাইকে জানালে তিনি বলেন  মাননীয় এম.পি মহোদয় একটা ভবন নির্মাণ করে দেবেন বলে জানিয়েছেন। উক্ত অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, মাদ্রাসার সম্মানিত পরিচালক নাজিমুদ্দিন ভুঁইয়া,মাদ্রাসার পরিচালনা কমিটির সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন,সন্দ্বীপিয়ান টিভির চেয়ারম্যান মাঈনউদ্দীন আল আকাশ, মাদ্রাসার সম্মানিত শিক্ষক, শিক্ষার্থীদের অভিবাবক সহ অত্র এলাকার গন্য মান্য ব্যাক্তিবর্গ।

অনুষ্ঠান শেষে এলাকার সুশীল সমাজের লোকজন জানান, প্রতিদিন মাদ্রাসা সংলগ্ন সোলাইমানিয়া সড়ক দিয়ে শত শত স্কুল, মাদ্রাসার শিক্ষার্থীরা যাতায়ত করে, এই সড়কটি কাঁচা  হওয়ায় বর্ষা মৌসুমে শিক্ষার্থীদের যাতায়তের জন্য  অনুপযোগী হয়ে পরে।এই সময় স্কুল, মাদ্রাসায় শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি খুব কমে যায় এতে তাদের লেখাপড়ায় অনেক ক্ষতি হয়।

পরিশেষে,অত্র এলাকার জন সাধারন এম.পি মাহফুজুর রহমান মিতার  নিকট একটাই দাবি জানান, মাদ্রাসা সংলগ্ন সড়কটি পাকা করন এবং মাদ্রাসার শিক্ষার্থীদের  পড়া লেখার সুবিধার্থে একটি ভবন নির্মান করা হলে এই এলাকার মানুষ অনেক উপকৃত হবে।

নাসিরনগরে বিভিন্ন পুঁজামন্ডপে প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিল থেকে চেক বিতরণ

নাসিরনগরে বিভিন্ন পুঁজামন্ডপে প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিল থেকে চেক বিতরণ


এস.এম অলিউল্লাহ ,ব্রাক্ষণবাড়িয়া প্রতিনিধিঃশারদীয় দূর্গাপুঁজা উপলক্ষে জেলার নাসিরনগর উপজেলার ১৭ টি পুঁজামন্ডপে মাননীয় প্রধান মন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার ত্রাণ তহবিল থেকে প্রায় ৭৫ হাজার টাকার চেক বিতরণ করা হয়েছে।২৩ অক্টোবর ২০২০ রোজ শুক্রবার সকাল ১১ ঘটিকার সময় উপজেলা পরিষদ কার্যালয়ে এ চেক বিতরণ অনুষ্টান অনুষ্টিত হয়।

ব্রাক্ষণবাড়িয়া ১ সংসদীয় ২৪৩ নাসিরনগর অাসনের মাননীয় সংসদ সদস্য বি,এম ফরহাদ হোসেন সংগ্রাম এম,পি,উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান রাফি উদ্দিন অাহমেদ,উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তা নাজমা অাশরাফি,উপজেলা পুঁজা উদযাপন কমিটির সাধারণ সম্পাদক নির্মল চৌধুরী এক জুম মিটিংয়ের মাধ্যমে এ চেক বিতরণ করেন।এ সময় অন্যান্যদের মাঝে উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ ন্যাশনাল নিউজ ক্লাবের কেন্দ্রিয়  সহ অাইন বিষযক সম্পাদক ও এশিয়ান টিভির নাসিরনগর উপজেলা প্রতিনিধি মোঃ অাব্দুল হান্নান,উপজেলা অাওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ লিয়াকত অাব্বাস টিপু,যুবলীগনেতা রায়হান অালী ভূইয়া,মহিদুজ্জামান টিটু,উপজেলা পুঁজা উদযাপন পরিষদের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি অনাথ বন্ধু দাস,স্বরজিৎ দাস, ভানু চন্দ্র চন্দ সহ চেক গ্রহনকারী বিভিন্ন  পুঁজা মন্ডপের সভাপতি ও দলীয় নেত্রীবৃন্দ।

মুবশ্বির আলী পক্ষ থেকে শারদীয় শুভেচ্ছা

 মুবশ্বির আলী  পক্ষ থেকে শারদীয় শুভেচ্ছা




আদিল আহমদ কানাইঘাট উপজেলা প্রতিনিধিঃ কানাইঘাট  উপজেলার ৫ নং বড়চতুল ইউনিয়ন বাসিকে শারদীয় শুভেচ্ছা।ধর্ম যার যার উৎস সবার মুবশ্বির আলী চাচাই  ৫ নং বড় চতুল ইউনিয়ন   আওয়ামী লীগের।  সভাপতি সাবেক চেয়ারম্যান ৫ নং বড়চতুল ইউপি কানাইঘাট উপজেলার ৫ নং বড়চতুল  ইউনিয়নের সম্ভাব্য চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী।

শৈলকুপায় ‘জমি আছে ঘর নাই’ প্রকল্পে ঘর নির্মাণে অনিয়ম তদন্তে দুদকের ৩ সদস্যের টিম

 শৈলকুপায় ‘জমি আছে ঘর নাই’ প্রকল্পে ঘর নির্মাণে অনিয়ম তদন্তে দুদকের ৩ সদস্যের টিম

ঝিনাইদহ প্রতিনিধিঃ ঝিনাইদহের শৈলকুপায় 'জমি আছে ঘর নাই' আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পে ঘর নির্মাণে অনিয়ম প্রসঙ্গে   গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশেরর পর সর্বোচ্চ পর্যায়ের তদন্ত  শুরু হয়েছে।  আজ দুপুরে দুদকের যশোর সমন্বিত জেলা কার্যালয় থেকে ৩ সদস্যের টিমের শৈলকুপায় আসে। টানা ৩ ঘন্টারও বেশী সময় ধরে তারা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ সাইফুল ইসলামের সাথে কথা বলেন ও ঘটনাস্থলগুলো পরিদর্শন করেন। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের অর্থায়নে এই বিশেষ প্রকল্প নিয়ে অনিয়মের অভিযোগ ওঠা নানা প্রসঙ্গে খোঁজ-খবর করেন। শৈলকুপার কবিরপুর সহ  ভেঙ্গে পড়া কয়েকটি উপকারভোগীর ঘর পরিদর্শন করেন। দুদকের ৩ সদস্যের এই প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেন দুদকের ইনেস্পক্টর আখতারুজ্জামান । তিনি জানান, দুদকের  উপ-পরিচালকের নির্দেশে ঘটনাস্থল পরিদর্শনে এসেছেন । পরে বিস্তারিত জানাতে পারবেন।শৈলকুপায় এই ঘর নির্মাণ নিয়ে নানা অনিয়ম আর কেলেঙ্কারীর খবর টেলিভিশন চ্যানেল, পত্র-পত্রিকা সহ গণমাধ্যমগুলোতে প্রচার হয়। চলতি সপ্তাহে ঘরগুলো ৩৭জন উপকারভোগীর কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, কোথাও নির্মাণের সময়ই ধ্বসে পড়ছে দেয়াল আবার কোথায় ইট-বালিসহ নিম্নমানের সামগ্রী দেয়ার অভিযোগে বন্ধ করে দেয়া হয়েছিল কয়েকটি ঘরের। ফাজিলপুর, কবিরপুর,মনোহরপুর, সাহবাজপুর সহ কয়েকটি গ্রামে এই ঘর নির্মাণে অনিয়ম ধরা পড়ে। ইট,বালি-সিমেন্ট সহ নির্মাণ সামগ্রী নিন্মমানের বলে কথা ওঠে । এসব ঘর তদারকি করেন শৈলকুপার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম।

ঝিনাইদহের শৈলকুপায় চলতি অর্থ বছরে আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের অধীনে ৪৪ লাখ ৪০ হাজার টাকা ব্যয়ে ৩৭টি ঘর নির্মাণ হয়েছে। প্রতিটি ঘর বাবদ বরাদ্দ ছিল ১লাখ ২০ হাজার টাকা ।

কালিয়া উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সোহাগ ও সাধারণ সম্পাদক পান্নু নির্বাচিত

কালিয়া উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সোহাগ ও সাধারণ সম্পাদক পান্নু নির্বাচিত

মো: আজিজুর বিশ্বাস স্টাফ রিপোর্টার নড়াইল।। দীর্ঘ পাঁচ বছর পর নড়াইলের কালিয়া উপজেলা ও পৌর ছাত্রলীগের কমিটি গঠন করা হয়েছে।আগামী এক বছরের জন্য কমিটি দুটি অনুমোদন দিয়েছে নড়াইল জেলা ছাত্রলীগ।কালিয়া উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি হিসেবে এফ এম সোহাগ, ও সাধারণ সম্পাদক মো:রাইসুল ইসলাম পান্নু, এবং কালিয়া পৌর সভাপতি হিসেবে এমএম তানবীরুল ইসলাম, ও সাধারণ সম্পাদক প্রশান্ত কুমার দাসকে, মনোনীত করেছেন নড়াইল জেলা ছাত্রলীগ।বৃহস্পতিবার (২২ অক্টোবর) কমিটি দুটি অনুমোদন দিয়েছেন নড়াইল জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি চঞ্চল শাহরিয়ার মিম, ও সাধারণ সম্পাদক রকিবুজ্জামান পলাশ।

জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি চঞ্চল শাহরিয়ার মিম সাংবাদিকদের জানান,নবগঠিত দুটি কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক মনোনয়নের ক্ষেত্রে বিভিন্ন বিষয়ে বিচার-বিশ্লেষণ করেই অনুমোদন দেয়া হয়েছে।আশা করি কালিয়ার মাটিতে আওয়ামী-লীগ সভানেত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে আগামী দিনে সাংগঠনিক গতিশীলতা আনতে নতুন কমিটি কাজ করে যাবে।সাধারণ সম্পাদক রকিবুজ্জামান পলাশ বলেন, গোপনে একটি কমিটি করে তদন্ত করা হয়েছে তারা নেশার সাথে জড়িত আছে কিনা এবং নারী কেলেঙ্কারী আছে কিনা।এছাড়া আওয়ামী-লীগ পরিবারের সন্তান সহ সাংগঠনিক দক্ষতা ও যোগ্যতা,নিয়মিত ছাত্রত্ব,দলের জন্য নিবেদিত প্রাণ এমন অসংখ্য বিষয় বিবেচনা করেই আগামী এক বছরের জন্য কমিটি অনুমোদন দেয়া হয়েছে।

নব নির্বাচিত সভাপতি এফ এম সোহাগ বলেন,দীর্ঘদিন পর কালিয়া উপজেলা ছাত্রলীগ কমিটি দেয়া হলেও কালিয়ার ছাত্র সমাজ আজ উজ্জীবিত ও আনন্দিত।বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে আমরা কাজ করে যাবো।নড়াইল জেলা ও কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের প্রতি আমরা কৃতজ্ঞ জানায়।

দেবহাটা উপজেলা নির্বাহী অফিসার হিসেবে যোগদান করলেন তাছলিমা আক্তার

 দেবহাটা উপজেলা নির্বাহী অফিসার হিসেবে যোগদান করলেন তাছলিমা আক্তার

আজহারুল ইসলাম সাদী, স্টাফ রিপোর্টারঃ সাতক্ষীরা জেলার দেবহাটার নবাগত উপজেলা নির্বাহী অফিসার হিসেবে, যোগদান করেছেন, তাছলিমা আক্তার। বৃহস্পতিবার (২২ অক্টোবর) আনুষ্ঠানিক ভাবে সাবেক নির্বাহী অফিসার সাজিয়া আফরীনের কাছ থেকে দায়িত্বভার বুঝে নেন তিনি।এর আগে তিনি যশোর জেলা প্রশাসকের কার্য্যালয়ে সহকারী কমিশনার (ভূমি)  হিসাবে নিয়োজিত ছিলেন।৩০ তম বিসি এস কর্মকর্তা তাছলিমা আক্তার এর জন্মস্থান, ভোলা জেলার, বোরহানউদ্দীন উপজেলায় হলেও লেখা পড়া শৈশব কেটেছে ঢাকায়। নবগত উপজেলা নির্বাহী অফিসারের স্বামী ২৯ তম বিসিএস কর্মকর্তা।

পরিবারিক ভাবে তার ২টি কন্যা সন্তান রয়েছে। দেবহাটায় পদায়ন হয়ে তিনি বাংলাদেশ সরকারের বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মকান্ড সঠিকভাবে বাস্তবায়ণ ও উপজেলার সার্বিক পরিবেশ স্বাভাবিক রাখতে সকলের সহযোগীতা কামনা করেছেন।

পটিয়া উপজেলা প্রজন্মলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি অনুমোদিত

পটিয়া উপজেলা প্রজন্মলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি অনুমোদিত

পটিয়া উপজেলা প্রজন্মলীগের নেত্রীবৃন্দ

সেলিম চৌধুরী,স্টাফ রিপোর্টারঃ বাংলাদেশ আওয়ামী মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্মলীগ পটিয়া উপজেলার পূর্ণাঙ্গ কমিটি অনুমোদন হয়েছে।গত বুধবার চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্মলীগ  সভাপতি আলমগীর আলম ও সাধারণ সম্পাদক নাজিম উদ্দীন সাক্ষরিত গঠিত কমিটিতে সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন সাবেক ছাত্রনেতা সৈয়দ মোহাম্মদ মহিউদ্দিন সাগর, সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছেন সাবেক ছাত্রনেতা  মোহাম্মাদ ইদ্রিস,সাংগঠনিক সম্পাদক মোরশেদুর রেজা সবুজ, মোহাম্মদ কাউছার, সাজ্জাদ হোসেন তুষার, সম্পাদক মন্ডলির সদস্যসহ ৭১ সদস্য বিশিষ্ট এ কমিটি গঠন করা হয় বলে সংগঠনের চট্টগ্রাম দক্ষিণ  জেলার সভাপতি কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক আলমগীর আলম বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

পটিয়ায় আজ জঙ্গলখাইনে ৫ দিন ব্যাপি পবিত্র মিলাদুন্নবী

 পটিয়ায় আজ  জঙ্গলখাইনে ৫ দিন ব্যাপি পবিত্র মিলাদুন্নবী

সেলিম চৌধুরী, পটিয়াঃ- আজ ২৩ অক্টোবর শুক্রবার বাদে মাগরিব হইতে পটিয়া উপজেলার    জঙ্গলখাইন ইউনিয়নে  চৌধুরী বাড়ি জামে মসজিদ প্রাঙ্গনে  এলাকাবাসীর উদ্যেগে পাঁচদিন ব্যাপি পবিত্র আজিমুশশান ঈদে মিলাদুন্নবী (দ.) শুরু হইবে। এতে দেশের বিভিন্ন  শীর্ষ  আলেম ওলামাগণ  তসরিফ আনবেন। এছাড়াও ব্যবসায়ি জনপ্রতিনিধি আমন্ত্রিত অতিথি হিসেবে গুরুত্বপূর্ণ বক্তব্য রাখবেন মাহফিল আয়োজিত কমিটি সুএে জানাগেছে।

উক্ত ঈদে মিলাদুন্নবী (দঃ) মিলাদ মাহফিল সফল করার আহবান জানিয়েছেন মাহফিল উদযাপন প্রস্তুতি কমিটির   আহবায়ক সমাজ সেবক মোঃ  আবদুল করিম  , সদস্য সচিব  মাষ্টার মোজাম্মেল হক চৌধুরী।

কুলাউড়ায় ডায়াবেটিস টেস্ট ফ্রি মাস্ক বিতরণ ক্যাম্পিং

কুলাউড়ায় ডায়াবেটিস টেস্ট ফ্রি মাস্ক বিতরণ  ক্যাম্পিং



মোঃ রেজাউল ইসলাম শাফি, কুলাউড়া উপজেলা প্রতিনিধিঃ গত ২১ অক্টোবর  বুধবার কুলাউড়া উপজেলার নয়াবাজারে "রক্তদান ও সমাজ কল্যান ফাউন্ডেশন কুলাউড়া  কর্তৃক আয়োজিত ফ্রি ব্লাড গ্রুপ ডায়াবেটিস টেস্ট ফ্রি মাস্ক বিতরণ  ক্যাম্পিং ও অভিষেক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।উক্ত অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন রক্তদান ও সমাজ  কল্যাণ ফাউন্ডেশনের  কুলাউড়া সংগঠনের সহ- সভাপতি জনাব ডাঃমো: রায়হান আহমেদ ।

প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন,  ৯নং টিলাগাও ইউনিয়নের  চেয়ারম্যান, তরুণ সমাজসেবক ও শিক্ষানুরাগী জনাব গোলাম রহমান আজমল।বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন , ইমরান আহমেদ তাঁতীদলের সাধারণ সম্পাদক  শামীম আহমেদ,পরিচালক,

সাকো",সুলতান আহমেদ,সদস্য ০৪নং ওয়ার্ড,আব্দুল বাজিত।এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক - এইচ কে সালমান আহমেদ   সহ উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের সদস্য,শুভাকাঙ্খী ব্যক্তিবর্গ প্রমুখ।

কুলাউড়ায় স্ত্রীর সাথে অভিমান করে স্বামীর আত্মহত্যা

কুলাউড়ায় স্ত্রীর সাথে অভিমান করে স্বামীর আত্মহত্যা

মোঃরেজাউল ইসলাম শাফি, কুলাউড়া উপজেলা প্রতিনিধিঃ মৌলভীবাজারের কুলাউড়া উপজেলাধীন শরীফপুর ইউনিয়নের সঞ্জরপুর গ্রামের স্ত্রীর সাথে অভিমান করে খলিলুর রহমান নামে ৩৫ বছরের এক যুবক গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন।

২২ অক্টোবর বৃহস্পতিবার রাতে সঞ্জরপুর গ্রামের নিজ বাড়িতে আত্মহত্যা করেন। খলিলুর রহমান সঞ্জরপুর গ্রামের আব্দুল মালিকের ছেলে। জানা যায়, দীর্ঘদিন ধরে স্ত্রীর সঙ্গে খলিলের মনমালিন্য চলছিল। এরই জের ধরে বৃহস্পতিবার রাতে পরিবারের সদস্যদের অজান্তে নিজ ঘরে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন খলিল। পরে পুলিশ গিয়ে তাঁর লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে।

পুলিশ জানায়, লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মৌলভীবাজার মর্গে পাঠানো হবে। তদন্ত করে পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

অধ্যক্ষ মাওলানা আবু সাঈদ আর নেই

অধ্যক্ষ মাওলানা আবু সাঈদ আর নেই

ডা.এম.এ.মান্নান,টাংগাইল জেলা প্রতিনিধি: টাংগাইল দারুল উলুম কামিল মাদ্রাসার সম্মানিত অধ্যক্ষ হযরত মাওলানা আবু সাঈদ  বৃহস্পতিবার,২২ অক্টোবর ২০২০ খ্রি এনায়েতপুর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্হায় সন্ধ্যা আনুমানিক ৬.৩০ মিনিটে জ্বনাব আবু সাঈদ ইন্তেকাল করিয়াছেন-ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাহি রাজিউন। মরহুমের প্রথম  জানাযা নামায আজ সকাল ১০.০০ টায় তার কর্মস্থল টাংগাইল দারুল উলুম কামিল মাদ্রাসা মাঠে অনুষ্ঠিত হবে  এবং দ্বিতীয় জানাজা নামায তার নিজ এলাকায় দুপুর ৩.০০ টায় হয়ে সামাজিক কবর স্হানে দাফন করা হবে। 

অধ্যক্ষ মাও.মো.আবু সাঈদের মৃত্যুতে বিভিন্ন সামাজিক সংগঠন,শিক্ষক ও ছাত্রবৃন্দ গভীর শোক প্রকাশ করেছেন। শোক বানীতে মরহুমের জন্য মহান অাল্লাহ কাছে দোয়া প্রার্থনা করেন এবং শোক পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানানো হয়।

বাস খাদে পড়ে ৩ জনের মৃত্যু

বাস খাদে পড়ে ৩ জনের মৃত্যু

আব্দুর রাজ্জাক,হরিরামপুর  (মানিকগঞ্জ) প্রতিনিধিঃ সড়ক দুর্ঘটনায় মানিকগঞ্জের সিংগাইরের মানুষের কাছে এখন অনেকটাই নিত্যদিনের ঘটনা হয়ে পরেছে । গত কয়েকদিন আগেও দূর্ঘটনা গটেছিলো কয়েক দিন পরপরই এ  সড়কে প্রাণ হারাচ্ছে পথচারী সাধারণ  মানুষজন। যেমনটি আজ ঘটেছে  মানিকগঞ্জের সিংগাইর উপজেলার ঋষিপাড়া বকচর এলাকায় ঢাকামুখী একটি বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে খাদে পড়ে চালকসহ ৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। আহত হয়েছেন বাসের ২০ জন যাত্রী।

বৃহস্পতিবার দুপুর প্রায় তিনটা দিকে মানিকগঞ্জ থেকে ঢাকাগামী যাওয়ার  পথে সিংগাইর-(মানিকগঞ্জ)  মহাসড়কের বকচর এলাকায় এই দুর্ঘটনা ঘটে। এ দুর্ঘটনায় নিহতরা হলেন, বাসচালক হৃদয় হোসেন (২৮), বাসের যাত্রী আনোয়ারা বেগম (৬৫) এবং সাধারণ পথচারী নিখিল সরকার (২৫)।

বিষয়টি নিশ্চিত করেন সিংগাইর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি-তদন্ত) আবুল কালাম বলেন, দুপুরে ঢাকামুখী একটি যাত্রীবাহী বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে সড়কের পাশের খাদে পড়ে যায়। এসময় ওই বাসের চাপায় ঘটনাস্থলেই চালকসহ তিন জন মারা যায়। এ দুর্ঘটনায় আহত হয়েছেন প্রায় ২০ যাত্রী। স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি করেন।

নিহতদের মরদেহ উদ্ধার করে মানিকগঞ্জ জেলা হাসপাতাল মর্গে পাঠানোর ব্যবস্থা  চলছে বলে জানান গেছে।

আলহাজ্ব তোফায়েল আহমেদের জন্মদিন উপলক্ষে দোয়া ও মিলাদ অনুষ্ঠিত

আলহাজ্ব তোফায়েল আহমেদের জন্মদিন উপলক্ষে দোয়া ও মিলাদ অনুষ্ঠিত

মোঃ আওলাদ হোসেন, জেলা প্রতিনিধি ভোলা (দৌলতখান) বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবরের স্নেহধন্য, ৬৯-এ পূর্ব বাংলার অবিসংবাদিত ছাত্রনেতা, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানের রাজনৈতিক সচিব, আওয়ামীলীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য, সাবেক শিল্প ও বাণিজ্য মন্ত্রী, ভোলা-১ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব তোয়ায়েল আহমেদের ৭৮ তম জন্মদিন উপলক্ষে ভোলা-৩ আসনের সংসদ সদস্য দ্বীপবন্ধু আলহাজ্ব নূরুন্নবী চৌধুরী শাওন'র উদ্যোগে মিলাদ ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। বৃহস্পতিবার এশার নামাজ শেষে লালমোহন পৌরসভার ১নং ওয়ার্ডে আলহাজ্ব নূরুল ইসলাম চৌধুরী কমপ্লেক্সে এ দোয়া ও মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। এসময় লালমোহন উপজেলা ও পৌরসভা আওয়ামীলীগ ও অঙ্গসহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

ধর্ষণকারী আমাদের কেউ হতে পারেনা!!!

ধর্ষণকারী আমাদের কেউ হতে পারেনা!!!

একটি দেওয়ালের দিকে দৃষ্টি দিয়ে দেখলাম লেখা আছে: ‘সময়টা এখন আমাদের’। একটু চিন্তা করলাম! সুন্দর শ্লোগান। কিন্তু কেন যেন আমার মনে হল, ‘সময়টা এখন আমাদের’ লেখা ঠিক নয়!লেখাটি হ‌ওয়া উচিৎ ছিল ‘সময়টা এখন ধর্ষকদের’"এই লেখাটি থাকলেই যথোপযুক্ত হত। সময়টা এখন ধর্ষকদের, বাংলাদেশ এখন ধর্ষকদের অভায়ারণ্য। এ দেশে ধর্ষণের মহাৎসব চলছে। তিন বছরের বাচ্চা থেকে শুরু করে কিশোরী, যুবতী, মধ্যবয়সী,সবাই শিকার হচ্ছেন ধর্ষণের। অভিজাত হোটল থেকে থেকে বস্তি এলাকা-ধর্ষকদের অভযারণ্য যেন সবই। পশ্চিমা পোশাকের নারী যেমন টার্গেট হচ্ছেন তেমনি হচ্ছেন হিজাব-পরিহিতারা। নিম্নবিত্ত বা বিত্তহীন নারী কেবল নন, শিক্ষিত মধ্যবিত্ত থেকে ধনীর দুলালিকে ও পোহাতে হচ্ছে ধর্ষণের নরকযন্ত্রণা।

ধর্ষণ করছে কারা? নন্দকিশোর থেকে শুরু করে যুবক ও মধ্যবয়সীরা–দিনমজুর থেকে দিনে কয়েক লাখ টাকা হাতখরচ পাওয়া ধনীর দুলাল। মনে হচ্ছে যেন ধর্ষণ একটা স্বাধীন সার্বভৌম ক্রীড়া,যা শুধু পুরুষরাই খেলতে পারে। নারীর মতের তোয়াক্কা না করেই!

ধর্ষণ হচ্ছে কোনো কোনো পুরুষের পৌরুষ প্রকাশের এক মহাস্ত্র।পুরুষদের শারীরিক গঠনে জৈবিক ইচ্ছার যে তীব্রতা সেটি কি তাদের ধর্ষণেচ্ছুক হয়ে ওঠার কারণ? বিষয়টি তা নয়। সমাজ আর সংসারে নারী বিষয়ে নিজের যাবতীয় সৎ-অসৎ ইচ্ছাপূরণে যাবতীয় প্রশ্রয় পেলেই পুরুষ ধর্ষক হয়ে উঠতে সাহস পায়। উন্নত বিশ্বে ধর্ষক ধরা পড়লে ‘পার’ পেয়ে যায় না সহজে–সমাজে বা রাষ্ট্রে ধর্ষকের অবস্থান যা-ই হোক না কেন। কিন্তু আমাদের সমাজের ‘ছাড় দেওয়ার’ সংস্কৃতি ধর্ষণ উৎসাহিত করে।

এই সমাজে যে ছাড়ের কথা বলছি তা আইন ও রাষ্ট্রও দেয় ধর্ষককে।মড়ার ওপর খাঁড়ার ঘায়ের মতো এখন আবার ধর্ষকের সঙ্গে বিয়ে দিয়ে ধর্ষণের মতো অপরাধটির উচ্চ মাত্রা দেওয়ার বন্দোবস্ত হল। বিয়ে নামের তুলসি পাতা দিয়ে ধর্ষণকাজ ধুয়ে নেওয়ার এই উদ্ভট ‘আইডিয়া’ যে নীতিনির্ধারকদের মস্তিস্কে খেলা করেছে, তাদের সুপ্ত মনে ধর্ষকদের প্রতি যে খানিকটা সহানুভূতি বা সমর্থন কাজ করে তা বলা বাহুল্য। না হলে ধর্ষকদের জন্য আরও কঠিন আইন এবং ধর্ষিতার পুনর্বাসনের জন্য রাষ্ট্রীয়ভাবে পরিকল্পনা না নিয়ে,ধর্ষণের দোহাই দিয়ে নারীর বিয়ের বয়স কমিয়ে দেওয়ার আইনটি হত না। তাতে প্রমাণ হল, রাষ্ট্রযন্ত্র এখনও পুরোপুরি পুরুষতান্ত্রিকতার বলয়ে আবদ্ধ।

আমাদের দেশের মধ্যে ধর্ষণের মামলা থানাগুলো নিতে চায় না। প্রায় সকল ধর্ষণের ঘটনায় থানার এ অনীহার অভিযোগ রয়েছে। কারণটা কী? শুধু থানার কর্তৃপক্ষকে বা প্রশাসনকে দায়ী করে লাভ নেই, বনানীর ছাত্রীধর্ষণের ঘটনায় ‘মেয়েগুলো গেল কেন’ এ ধরনের প্রশ্ন করে অনেক প্রগতিশীলও পরোক্ষভাবে ধর্ষকদের পক্ষে অবস্থান নিয়েছেন।

যখন প্রগতিশীলদের মুখ থেকে এ প্রশ্ন উচ্চারিত হয় তখন মনে হয়েছে, আমাদের সমানাধিকারের লড়াইটা আসলে অরণ্যে রোদন। একেকটা ঘটনা অনেকের মুখোশ উন্মোচন করে দেয়। যারা মুখোশ পরে অকাতরে নারী-পুরুষের সমানাধিকারের বয়ান করে যান। এরা কর্মস্থলে নারী সহকর্মীকে হেনস্থা করেন– ঘরে স্ত্রীর প্রতি অবিশ্বস্ত হন। এরাও মনে মনে এ মানসিকতা পোষণ করেন যে, নারী মানেই ভোগ্যবস্তু। এই প্রগতিবাদীরাও ধর্ষণ করেন। তবে তাদের ধর্ষণ অন্যরকম। একটা মেয়ের জীবনের স্বাভাবিকতা নষ্ট করে দিয়ে তারাই সমানাধিকারে সোচ্চার সংগঠনের অনুষ্ঠানে প্রধান বা বিশেষ অতিথি হয়ে বসেন, বক্তৃতা দেন।

সমাজের ক্ষমতাধর যারা তারা আইনের উর্ধ্বে থাকেন। অর্থ, প্রতিপত্তির কারণে শুধু ধর্ষণের মতো অপরাধ নয়, যে কোনো অপরাধ থেকে তারা মুক্ত হয়ে সুখে শান্তিতে ঘুরে বেড়ায় আমাদের চোখের সামনে। তবে ইদানিং বনানী,ময়মনসিংহ আর বগুড়ার ঘটনা মিডিয়ায় আলোড়িত হওয়ার কারণে হয়তো প্রভাবশালী হয়েও ধর্ষক ও তাদের সহযোগীরা বিচারের আওতায় এসেছে। তবে তাতে উল্লসিত হওয়ার কিছু নেই কিন্তু মিডিয়ার অগোচরে আরও কত ঘটনা ঘটে যাচ্ছে তার হিসাব করতে গেলে একটা পচা গলিত সমাজের ছবি উঠে আসবে আমাদের সম্মুখে।একজন মানুষের পরিচয় কি একজন ধর্ষণকারী?নাকি একজন মানুষ হিসেবে?তাদের পরিচয় পাওয়া যাবে আমাদের দেশে কিংবা সমাজে?
এই প্রশ্ন রেখে গেলাম সকল পাঠকের কাছে।প্রিয় পাঠক আপনাদের মন্তব্য আপনারা লিখবেন এই আশা করছি।একজন ক্ষুদে লেখক হিসেবে।


লেখক : মোঃ ফিরোজ খান, সাংবাদিক