নাগরপুরে মৎস্যজীবি দলের আহবায়ক কমিটি অনুমোদিত

নাগরপুরে মৎস্যজীবি দলের আহবায়ক কমিটি অনুমোদিত



ডা.এম.এ.মান্নান, টাংগাইল জেলা প্রতিনিধি:
টাঙ্গাইলের নাগরপুরে উপজেলা জাতীয়তাবাদী মৎস্যজীবি দলের আহ্বায়ক কমিটি ঘোষনা করেছে জেলা মৎস্যজীবি দল।

গত ৩ ডিসেম্বর, ২০২০ খ্রি. বৃহস্পতিবার বিকালে জেলা জাতীয়তাবাদী মৎস্যজীবি দলের আহ্বায়ক এ্যাড মো. জামাল উদ্দিন ও সদস্য সচিব মো. মোস্তফা কামাল এর সাক্ষরিত মো.ঠান্ডু বেপাড়ী কে আহবায়ক ও মো.জুলমত বেপাড়ী কে সদস্য সচিব করে মোট ৫৩ সদস্য বিশিষ্ট আহবায়ক কমিটি অনুমোদন দেন।

কমিটি অনুমোদন ও ঘোষনা কালে উপস্থিত ছিলেন জেলা জাতীয়তাবাদী মৎস্যজীবি দলের সিনিয়র যুগ্ন আহ্বায়ক আবু রায়হান খন্দকার লিটন, যুগ্ন আহ্বায়ক আক্কাছ আলী।

জেলা জাতীয়তাবাদী মৎস্যজীবি দলের আহ্বায়ক এ্যাড মো. জামাল উদ্দিন ও সদস্য সচিব মো. মোস্তফা কামাল বলেন, তিন মাসের জন্য আহবায়ক কমিটি দেওয়া হলো। এ কমিটির মাধ্যমে নাগরপুর উপজেলার ১২টি ইউনিয়ন কমিটি করে সম্মেলনের মধ্য দিয়ে উপজেলা জাতীয়তাবাদী মৎস্যজীবি দলের পূর্নাংঙ্গ কমিটি গঠণ করা হবে।

নতুন কমিটির আহ্বায়ক মো. ঠান্ডু ব্যাপারী ও সদস্য সচিব জলমত ব্যাপারী বলেন, জাতীয়তাবাদী দল বিএনপি'র কেন্দ্রীয় কমিটির পল্লী উন্নয়ন বিষয়ক সম্পাদক ও সাবেক সফল পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী এ্যাড. গৌতম চক্রবর্তীর নেতৃত্বে কমিটি আরো শক্তিশালী হয়ে কাজ করবে। আমরা শহীদ জিয়ার আদর্শ নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে দলের কাজ করে আসছি এবং ভবিষ্যতেও দলের চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া ও সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক জিয়ার নির্দেশে সকল আন্দোলন সংগ্রামে এ কমিটি মাঠে থাকবে।

বীরমুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মালেক'র রাষ্ট্রীয় মর্যাদা দাফন সম্পন্ন!

বীরমুক্তিযোদ্ধা  আব্দুল মালেক'র রাষ্ট্রীয় মর্যাদা দাফন সম্পন্ন!


মোঃআকাশ সরকার,কুড়িগ্রাম প্রতিনিধিঃ কুড়িগ্রামের উলিপুরের বীরমুক্তিযোদ্ধা অবসর প্রাপ্ত পুলিশ অফিসার আব্দুল মালেক গতকাল বৃহস্পতিবার রাত ৯টায় ১৫ মিনিটে কুড়িগ্রাম সদর হাসপাতালে মৃতুবরণ করেন। মৃত্যু কালে তার বয়স হয়েছিলো ৭০ বছর।

আব্দুল মালেক মৃত্যুকালে  স্ত্রী, ২ ছেলে ও ২ মেয়েসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। আজ বাদ জম্মুা তার নিজ বাসভবণে  রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় জানাযা নামাজ শেষে গ্রামের মসজিদদের পাশে  কবরস্থানে তার মরদেহ দাফন করা রয়েছে।উপস্থিত ছিলেন উলিপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার নুরে জান্নাত,উলিপুর সার্কেল অফিসার আল মাহমুদ,উলিপুর অফিসার্স ইন চার্জ ইমতিয়াজ কবিব,বীর মুক্তিযোদ্ধা ফয়জার রহমান,,মরহুম আব্দুল মালেক কুড়িগ্রাম ডিপুটি সিভিল সার্জন ডা: এ এইচ এম বোরহান উল ইসলাম সিদ্দিকির বাবা।

মানিকগঞ্জে সড়ক দূর্ঘটনায় নাগরপুরের একই পরিবারের ৫জন সহ ৭ জন নিহত

মানিকগঞ্জে সড়ক দূর্ঘটনায় নাগরপুরের একই পরিবারের ৫জন সহ ৭ জন নিহত

ডা.এম.এ.মান্নান, টাংগাইল জেলা প্রতিনিধি:মানিকগঞ্জের দৌলতপুর উপজেলার মুলকান্দি নামক স্থানে ব্রীজ সংলগ্ন স্থানে আজ ৪ ডিসেম্বর  শুক্রবার দুপুর আড়াই টার  দিকে ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা "নিউ ভিলেজ লাইন বাস" ও দৌলতপুর থেকে ছেড়ে যাওয়া সিএনজি মুখোমুখি সংর্ঘষে একই পরিবারের ৫জন সহ ৭জন নিহত হয়েছে। নিহত ব্যক্তিরা হলেন নাগরপুর উপজেলার চাষাভাদ্রা গ্রামের মৃত নিতাই দাসের ছেলে হরেকৃষ্ণ (৫০),হরে কৃষ্ণের ছেলে গোবিন্দ্র দাস (২৬),গোবিন্দের স্ত্রী ববিতা দাস (২০), গোবিন্দের মেয়ে রাধা দাস (৬), গোবিন্দের দাদী খুকি বালা দাস (৭০), গোবিন্দের ধর্ম শশুর রাম প্রসাদ (৪০), সমেতপুর গ্রামের সদর উদ্দিনের ছেলে সিএনজি ড্রাইভার জামাল (৩০)।


এবিষয়ে গোবিন্দের ফ্যামেলী  সূত্রে জানা গেছে, একই সিএনজি করে রাধা দাসকে নিয়ে মানিকগঞ্জ মেডিকেলে ডাক্তার দেখানোর জন্যে যেতে লাগছিল কিন্তু মুলকান্দি নামক এলাকায় পৌছাঁলে এই ঘটনাটি ঘটে । এ ঘটনায় এলাকা জুড়ে শোকের ছায়া বিরাজ করছে।


এলাকাবাসী জানান, মৃত গাবিন্দোর  মোট ৬ সদস্য বিশিষ্ট পরিবার ছিল এর মধ্যে ৫জন মারা গেছে বাকী তার মা ঝর্না রানী বেঁচে আছে।পরিবারের সবাইকে হারিয়ে তার মা দিশেহারা। দূর্ঘটনার পর চালক ও হেলপার পালিয়ে গেলেও দূর্ঘটনা কবলিত বাস ও সিএনজি পুলিশের হেফাজতে রয়েছে।


দৌলতপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) রেজাউল করিম বলেন, মানিকগঞ্জে যাওয়ার পথে মুলকান্দি নামক স্থানে বাস ও সিএনজি মুখোমুখি সংঘর্ষ ঘটে। এতে ঘটনা স্থলে একজন নিহত ও বাকী ৬জন হাসপাতালে নেওয়ার পথে মারা যায়।


ভাদ্রা ইউপি সদস্য মো. বেলাল সরদার বলেন, দুপুর ২টার দিকে মানিকগঞ্জে যাওয়ার পথে বাস ও সিএনজি মুখোমুখি সংঘর্ষে একই পরিবারের ৫ জন সহ মোট ৭নিহত হয়। ঘটনার পরই ঘাতক বাস চালক পালিয়ে যায়। মর্মান্তিক এ ঘটনায়  শোকের ছায়া নেমে আসছে এলাকা জুড়ে।

শেখ ফজলুল হক মনি'র ৮১ তম জন্মদিনে নগর যুবলীগব আয়োজিত স্মরণ সভা

শেখ ফজলুল হক মনি'র ৮১ তম জন্মদিনে নগর যুবলীগব আয়োজিত স্মরণ সভা


তুহিন রানা (আব্রাহাম) ; খুলনা নগর প্রতিনিধিঃ
নগর যুবলীগ আয়োজিত স্মরণ সভায় সিটি মেয়র খালেক বলেন, অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ বিনির্মানে জাতির জনকের আদর্শে বলিয়ান আপোষহীন নেতৃত্ব শহীদ শেখ মনি।

খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সিটি মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক বলেন, অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ বিনির্মানে জাতির জনকের আদর্শে বলিয়ান আপোষহীন নেতৃত্ব শহীদ শেখ ফজলুল হক মনি। যিনি ছাত্র জীবন থেকে বাংলার মানুষের অধিকার রক্ষায় সংগ্রাম করেছেন। কারাবরন করেছেন সহ্য করেছেন অমানবিক নির্যাতন বাঙ্গালীর মুক্তি সংগ্রামে। ছিলেন মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক। ছিলেন গেরিলা বাহিনী মুজিব বাহিনীর প্রতিষ্ঠাতা। 
স্বাধীনতা পরবর্তী সময়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নির্দেশে দেশের যুব সমাজকে একত্রিত করে দেশ গড়ার লক্ষে যুবলীগ প্রতিষ্ঠা করেন। প্রতিষ্ঠার পর থেকে আজ অবধি যুবলীগ এ দেশের যুব সমাজকে একত্রিত করে দেশ গড়ায় নিয়োজিত রয়েছে। শহীদ শেখ ফজলুল হক মনি'র সপ্ন বাস্তবায়নে বর্তমান যুব সমাজকে তার জীবনাদর্শন থেকে শিক্ষা নিতে হবে। 

বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান শেখ ফজলুল হক মনি'র ৮১ তম জন্মদিনে নগর যুবলীগব আয়োজিত স্মরণ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।


এ সময় বিশেষ অতিথির বক্তব্যে খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এম ডি এ বাবুল রানা বলেন, শহীদ শেখ ফজলুল হক মনি শুধু একজন রাজনীতিবীদ ছিলেন না। তিনি অসাম্প্রদায়িক চেতনায় বিশ্বাসী সৃজনশীল কর্মের একজন প্রগতিশীল মানুষ ছিলেন। বর্তমান প্রেক্ষাপটে ধর্মীয় মৌলবাদ ও মাদক নির্মূলে যুব সমাজকে শহীদ শেখ ফজলুল হক মনি'র ন্যায় সৃজনশীল কর্মে আত্মনীয়োগ করতে হবে। প্রগতিশীল কাজের মধ্য দিয়ে শহীদ ফজলুল হক মনি'র অসাম্প্রদায়িক চেতনা প্রতিষ্ঠা করতে হবে। মাদক ও সন্ত্রাস থেকে যুব সমাজকে দূরে রাখতে হবে। 

শুক্রবার সকাল ১০ টায় নগরীর শঙ্খ মার্কেটস্থ দলীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত স্মরণ সভায় খুলনা মহানগর যুবলীগের আহবায়ক সফিকুর রহমান পলাশ এর সভাপতিত্বে ও যুগ্ম আহবায়ক শেখ শাহাজালাল হোসেন সুজন এর পরিচালনায় আরো বক্তব্য রাখেন, মহানগর আওয়ামী লীগ নেতা  বীর মুক্তিযোদ্ধা নুর ইসলাম বন্দ, অধ্যক্ষ শহিদুল হক মিন্টু, শ্যামল সিংহ রায়, নগর যুবলীগ নেতা এস এম হাফিজুর রহমান হাফিজ, রোজি ইসলাম নদী, কামরুল ইসলাম, আব্দুল কাদের শেখ, মোঃ আবুল হোসেন, কাজী কামাল হোসেন, শওকত হোসেন, অভিজিত চক্রবর্তী দেবু, কবির পাঠান, তাজুল ইসলাম, মোস্তফা শিকদার, মুহিদুল ইসলাম মিলন, মশিউর রহমান সুমন, কে এম শাহিন হাসান, ইয়াসিন আরাফাত, রাশেদুল ইসলাম রাশেদ, রাশেদুজ্জামান রিপন, অলিউর রহমান রাজু, আব্দুল্লাহ আল মামুন মিলন, আব্দুল মালেক, ইলিয়াস হোসেন লাবু, রবিউল ইসলাম লিটন, শওকাত হাসান, মুক্তা সরদার, মোস্তাইন বিন ইদ্রিস চঞ্চল, হাসান শেখ, আসাদুজ্জামান কাঞ্চন, মাসুম উর রশিদ, বাদল সিপাহী, ইমরুল রিপন, জামাল শেখ, রকিবুল ইসলাম, ইকবাল হোসেন, মাসুম আহমেদ ডলার, জামিল আহমেদ সোহাগ, জিহাদুর রহমান জিহাদ, মহিদুল ইসলাম শান্ত, লাবু আহমেদ, ফরিদুল ইসলাম, জনি মিয়া, আশরাফুল ইসলাম মুন, সাবেক ছাত্রনেতা মশিউর রহমান, বিপুল মজুমদার, নূর হাসান জনি, ছাত্রনেতা আসাদুজ্জামান বাবু, মাহামদুল হাসান শাওন, জব্বার আলী হিরা, এখতিয়ার মোল্লা, ঝলক বিশ্বাস, জহির আব্বাস, ইমাজ উদ্দিন রিপন, মাহাদুল ইসলাম সুজন, ইয়াসিন আরাফাত, শেখ সাকিব, মাহামুদুর রহমান রাজেশ, হিরন হাওলাদার, জনি বসু, নিশাত ফেরদৌস অনি সহ দলের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ।


আলোচনা সভা শেষে দোয়া অনুষ্ঠিত হয় এবং দুস্থদের মাঝে খাদ্য বিতরন করা হয়।

সিরাজগঞ্জ জেলা তায়কোয়ানডো ক্লাবের ২য় শাখার উদ্বোধন

সিরাজগঞ্জ জেলা তায়কোয়ানডো ক্লাবের ২য় শাখার উদ্বোধন

মাসুদ রানা সিরাজগঞ্জ  জেলা প্রতিনিধিঃসিরাজগঞ্জ জেলা তায়কোয়ানডো ক্লাবের ২য় শাখার উদ্বোধন করা হয়েছে । গতকাল শুক্রবার  বিকালে শহরের  চেম্বার  অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রি  এর ৪র্থ তলায় ক্লাবের ২য়  শাখার কেক কেটে  উদ্বোধন  করেন   প্রধান  অতিথি অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব)চৌ: মো: গোলাম রাব্বী।তায়কোয়ানডো ক্লাবের  সভাপতি  বীর মুক্তিযোদ্ধা  মির্জা ফারুক  আহমেদ এর সভাপতিত্বে বিশেষ  অতিথির বক্তব্যে  রাখেন ,শহীদ মুনসর আলী মেডিকেল  কনসালট্যান্ট সার্জারী  ডাঃ কে  এইচ মুরাদ,সিরাজগঞ্জ জেলা তায়কোয়ানডো ক্লাবের সাধারণ  সম্পাদক  ও  প্রধান  প্রশিক্ষক  বাবুল হোসেন , এনডিপির প্রতিনিধি  নুরুন্নাহার চৌধুরী প্রমূখ। বক্তরা বলেন, তায়কোয়ানডাে কেবল আত্মার অভিনব উন্নত শক্তিকৌশল নয় বরং তায়কোয়ানডাে চর্চার মাধ্যমে একজন প্রশিক্ষণার্থী নানাভাবে উপকৃত হতে পারে। এটি এমন একটি উন্নত কৌশল, যেখানে দেহের গতিকে শক্তিতে রূপান্তরের মাধ্যমে কার্যকর করা হয় এবং সমগ্র দেহ কাজ করে একটি অস্ত্রের মতাে। তায়কোয়ানডাে মানসিক গুণাবলী বিকাশে সহায়তা করে। তায়কোয়ানডাে চর্চা শরীরকে সুস্থ, সবল ও কর্মঠ করে দেহের পেশীকে শক্তিশালী ও মজবুত করে গড়ে তােলে এবং শরীরের রক্ত সঞ্চালনে সহায়তা করে।তাই সকল ছেলে মেয়েদের আত্নরক্ষাতে  তায়কোয়ানডো প্রশিক্ষণ নেওয়া অত্যন্ত জরুরী ।

এছাড়াও অন্যান্যদের মধ্যে  তায়কোয়ানডো ক্লাবের সহ সভাপতি  শফী ইমাম,

সহ ক্লাবের সকল কর্মকর্তা  ও শিক্ষার্থীরা উপস্থিত  ছিলেন ।  অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনায় ছিলেন, ইমরুল হাসান  বাদল।

অধ্যক্ষ মুকতাদের আজাদ খান এর সংবর্ধনায় রীতা দত্ত

 অধ্যক্ষ মুকতাদের আজাদ খান এর সংবর্ধনায় রীতা দত্ত

 



রিয়াজুল করিম রিজভী,চট্টগ্রাম ব্যুরো প্রধানঃশিক্ষাঙ্গনে গুণগত শিক্ষা নিশ্চিত করে যোগ্য দক্ষ প্রজন্ম গড়ে তুলতে হবে।সীতাকুন্ড উপজেলাধীন ‘ছোট দারোগার হাট তাহের-মনজুর কলেজ’-এর সদ্য যোগদানকৃত অধ্যক্ষ মুকতাদের আজাদ খান এর সংবর্ধনা আজ ৪ ডিসেম্বর ২০২০ শুক্রবার নগরীর সুপ্রভাত স্টুডিও হলে সরকারি চারুকলা কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ রীতা দত্তের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়।


সংবর্ধনা সভায় অধ্যক্ষ রীতা দত্ত বলেন, শিক্ষাঙ্গনে মানসম্মত শিক্ষা নিশ্চিত করতে হবে। মানসম্মত টেকসই শিক্ষায় বর্তমান প্রজন্মকে শিক্ষিত করতে পারলে তারাই একদিন দেশকে এগিয়ে নেবে। তাদের আলোয় আলোকিত বাংলাদেশ বিনির্মাণ সম্ভব হবে। তাই শিক্ষাঙ্গনে গুণগত ও মানসম্মত শিক্ষা নিশ্চিত করতে হলে যোগ্য, দক্ষ, কর্তব্যনিষ্ঠ, দায়িত্বশীল শিক্ষকের বিকল্প নেই। শিক্ষাবিদ অধ্যক্ষ মুকতাদের আজাদ খান এর সুপরিচালনায় একদিন এই কলেজ শ্রেষ্ঠত্বের কাতারে উন্নীত হবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন। তিনি বলেন, আমি আজ গর্বিত যে আমার ছাত্র মুকতাদের আজাদ খান এ কলেজের অধ্যক্ষ হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করেছে।


সংবর্ধনার জবাবে অধ্যক্ষ মুকতাদের আজাদ খান পূর্ণ দায়িত্বশীলতা, সততা ও অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে এই কলেজকে এ অঞ্চলের সেরা বিদ্যাপীঠে পরিণত করতে প্রচেষ্টা চালিয়ে যাওয়ার সংকল্প ব্যক্ত করেন। এজন্য তিনি কলেজ কর্তৃপক্ষ, শিক্ষক, শিক্ষার্থী, অভিভাবকসহ সংশ্লিষ্ট সকলের সহযোগিতা কামনা করেন। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, সবার সহযোগিতা পেলে এ কলেজের উন্নতি, সমৃদ্ধি কেউ ঠেকিয়ে রাখতে পারবে না।


বিটিভি’র উপস্থাপিকা আবৃত্তিকার রেখা নাজনীন এর সঞ্চালনায় সংবর্ধনা সভায় বক্তব্য রাখেন-প্রবীণ সাংবাদিক নেতা ও বীর মুক্তিযোদ্ধা মইনুদ্দীন কাদেরী শওকত, গেরিলা মুক্তিযোদ্ধা ও বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক যুগ্ম পরিচালক ফজল আহমদ,সন্দ্বীপের হাজী আবদুল বাতেন সওদাগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা অ্যাডভোকেট লায়ন হাজী মোঃ সলিমুল্লাহ, চট্টগ্রাম মা ও শিশু হাসপাতালের উপ-পরিচালক (প্রশাসন) মোঃ মোশাররফ হোসাইন, ফেনী ইউনির্ভাসিটি’র প্রক্টর মনিরুজ্জামান সোহান।


স্বাগত বক্তব্য রাখেন-প্রভাষক ফসিউল আলম, অধ্যক্ষ মুকতাদের আজাদ খান এর জীবনী পাঠ করেন অনলাইন নিউজ পোর্টাল দেশবিদেশটুয়েন্টিফোর ডটকম সম্পাদক কাজী জিয়া উদ্দিন সোহেল, শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন লায়ন্স ক্লাব অব চিটাগাং শতাব্দির কো-চেয়ারম্যান লায়ন আবু ছালেহ্, দৈনিক প্রিয় চট্টগ্রামের নির্বাহী সম্পাদক শাওন ইমতিয়াজ, হাজী এম.এ. কালাম সরকারি কলেজের প্রভাষক এ.বি.এম মুজাহিদুল ইসলাম বাতেন, ইস্পাহানী গ্রুপের উইং ম্যানেজার মোঃ নুর নবী, অ্যাডভোকেট এস.এম. মোস্তফা, প্রাথমিক চিকিৎসক সোসাইটির চেয়ারম্যান ডা. মাহাবুবুল আলম, সমাজকর্মী ও সংগঠক এমদাদুল করিম সৈকত, দৈনিক ইনফো বাংলার সিনিয়র স্টাফ রিপোর্টার মোঃ কামাল হোসেন, প্রাবন্ধিক ডা. জামাল উদ্দিন, কবি মান্নান নাবিল, সাবেক ছাত্রনেতা মোঃ রেজাউল করিম, দৈনিক দেশবার্তা প্রকাশক হাজী মোঃ জসিম উদ্দিন প্রমুখ।

সংবর্ধনায় পবিত্র কুরআন থেকে তেলোয়াত করেন অধ্যক্ষ এম.সোলাইমান কাসেমী।               

প্রসঙ্গতঃ সন্দ্বীপস্থ আবুল কাসেম হায়দার মহিলা কলেজের সাবেক ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মুকতাদের আজাদ খান গত ১ নভেম্বর, ২০২০ সীতাকুন্ড উপজেলাধীন তাহের-মনজুর কলেজে অধ্যক্ষ পদে যোগদান করেন। তিনি চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩১তম ব্যাচের রাজনীতি বিজ্ঞান বিভাগের কৃতী ছাত্র। সন্দ্বীপের হাজী আবদুল বাতেন সওদাগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি মুকতাদের আজাদ খানের জন্ম ১৯৭৭ সালে সন্দ্বীপের মুছাপুর ইউনিয়নে।

শেখ আবু নাসের স্মৃতি টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট টুর্নামেন্টের উদ্বোধন

শেখ আবু নাসের স্মৃতি টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট টুর্নামেন্টের উদ্বোধন

নিউজ ডেস্কঃ শুক্রবার খুলনার খালিশপুর প্রভাতী মাধ্যমিক বিদ্যালয় মাঠে ইউনিটি ক্রিকেট একাডেমি আয়োজিত শেখ আবু নাসের স্মৃতি টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট টুর্নামেন্টের উদ্বোধন করেছেন খুলনা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক। খালিশপুর ইউনিটি ক্রিকেট একাডেমির ভাইস চেয়ারম্যান কাজী ফয়েজ মাহমুদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এমডিএ বাবুল রানা, আইনজীবী সমিতির নবনির্বাচিত সভাপতি অ্যাডভোকেট মোঃ সাইফুল ইসলাম, ১২ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোঃ মনিরুজ্জামান, কাউন্সিলর এসএম খুরশিদ আহমেদ টোনা, কাউন্সিলর এমডি মাহফুজুর রহমান লিটন, সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর পারভীন আক্তার, কেএমপি'র সোনাডাঙ্গা জোনের সহকারী পুলিশ কমিশনার আবুল খায়ের ফকির, বিশ^াস প্রোপার্টিজ এর প্রোপাইটার মোঃ আজগার বিশ^াস তারা, বাংলাদেশ ট্যাংকলরী ওনার্স এ্যাসোসিয়েশনের মহাসচিব শেখ ফরহাদ হোসেন প্রমুখ। স্বাগত জানান খালিশপুর ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক সংসদের ক্রীড়া সম্পাদক মোঃ হাফিজুর রহমান মিলন। উল্লেখ্য, ২০ দিনব্যাপী এই টুর্নামেন্টে খুলনার ৩২টি দল অংশ নিচ্ছে। উদ্বোধনী খেলায় উইনিটি গ্রীন বনাম রুবী এন্টারপ্রাইজের মধ্যকার টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত হয়।

নড়াইল ডিবি পুলিশের অভিযানে সাজাপ্রাপ্ত আসামী গ্রেফতার

নড়াইল ডিবি পুলিশের অভিযানে  সাজাপ্রাপ্ত  আসামী গ্রেফতার



মো: আজিজুর বিশ্বাস ষ্টাফ রিপোর্টার নড়াইল।।
নড়াইল জেলা পুলিশ সুপারের নির্দেশে, গোপন তথ্যের ভিত্তিতে ইং ০৪/১২/২০২০ তারিখ, শুক্রবার বিকাল ০৪,৩০ ঘটিকায়,নড়াইল জেলার কালিয়া থানাধীন বড়নাল বাজার হইতে। যশোর জেলার বেনাপোল পোর্ট থানার মামলা নং ৭৬/১৭,জি আর ৩০৪/১৭,এস সি- ১৭৩৪/১৭ মামলা বিজ্ঞ জেলা ও দায়রা জজ আদালত -যশোর কর্তৃক যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড সহ ১০ ( দশ)হাজার টাকা জরিমানার এক সাজাপ্রাপ্ত ওয়ারেন্টের পলাতক আসামী, মোঃ জাকির হোসেন(৪৩), পিতাঃ মোঃ সিদ্দিক শেখ,সাং চন্ডিনগর,থানাঃ কালিয়া,জেলাঃ নড়াইল কে গ্রেফতার করেছেন নড়াইল জেলা ডিবি পুলিশের চৌকাস টিম।


 ডিবি পুলিশ সূত্রে জানা যায় এএসঅাই আনিস,এর সঙ্গীয় ফোর্স এএসঅাই মাফুজুর,এএসঅাই  শরিফ,এএসঅাই সেলিম,কনেস্টবল বখতিয়ার,রহুল,জুনায়েদ,সরোয়ার,দেলোয়ার,শিবলী, সহ অভিযান চালিয়ে আসামী জাকির কে গ্রেফতার করেন।


ডিবি পুলিশের এএসঅাই অানিচ বলেন অাসামি জাকির কে গ্রেফতার করে যশোর বেনাপোল পোর্ট থানা কর্তৃপক্ষের নিকট হস্তান্তর করা হয়েছে। 

জীবন মানেই যুদ্ধ

জীবন মানেই যুদ্ধ


একজন মানুষের জীবন শুরু হয় জন্ম থেকেই।আর তখন থেকে প্রত‍্যেকে জীবনের মানে খুঁজে বেড়ায় কিন্তু এই জীবনের মানে কি খুঁজে শেষ করা যায়?শেষ করা যায় না কোনোদিন। জীবন মানেই অঘোষিত একটা যুদ্ধ। এই যুদ্ধ হলো প্রতিনিয়ত লড়াই করে বেঁচে থাকার যুদ্ধ।


রাস্তায় চলতে ফিরতে কখনও ভাবি প্রতিনিয়ত রিকশা চালায় যে ব্যক্তি তার কি জীবনের প্রতি কোনো বিরক্তি নেই? আবার সারাদিন যে ব‍্যাক্তি গার্মেন্টসে প্রতিনিয়ত কাপড় সেলাই করে কখনও সেই ব্যক্তিটাকেও নিয়ে ভাবি,তার কি কাজ করতে কোনো বিরক্তি নেই?রাস্তায় প্লাস্টিকের জিনিসপত্র খোঁজাখুঁজি করা টোকাইদের কি ঐসব কাজ করতে   বিরক্তি নেই?


অবশ্যই ওদের বিরক্তি আছে। তবুও বেঁচে থাকার সংগ্রাম করেই আমাদের বেঁচে থাকতে হয়।প্রতিনিয়ত বুকে কষ্ট, আর মুখে হাসি নিয়েই তাদের পথচলা,শুধুমাত্র তাদের কাছেই জীবনের মানেটা একটু ভিন্ন।

জীবনকে বাচিয়ে রাখতে জীবনের ক্ষুধা মেটাতে,আর ছেলেমেয়েদের মুখে হাসি ফোটাতে,শুধুমাত্র দু মুঠো ভাতের জন্য তাদের নিত্যকার জীবনের কাজকর্ম যেটা জীবনের জন্য কঠিন একটা যুদ্ধ।এই হাড়ভাঙা পরিশ্রম, এই দু মুঠো ভাতের জন্য যুদ্ধ এটাই হয়তো জীবনের জন্য বড় কিছু।যেটা অট্রলিকায় যারা বসবাস করেন তারা সহজে বুঝতে পারবেনা।

মধ্যবিত্ত মানুষের জীবনের জন্য সবসময় কঠিন পরিশ্রম করতে হয় । তাদের ইচ্ছা,স্বপ্ন সব বাস্তবতার কাছে হার মানে। নিজ পরিবার,ভাইবোনদের জন্য নিজের  জীবনের বেশির ভাগ সময়ই অতিবাহিত করে দিনমজুর সাধারণ শ্রমিকরা। তাদের জীবনের মানে অনেকটা ভিন্ন। এসব কথা যখনই ভাবি তখনই সবকিছু কেমন যেনো গোলমেলে মনে হয়।

জীবন সংগ্রামের মাধ্যমে আমরা আমাদের জীবনের রঙ বদলাই। একজন মানুষ তখনই সুখী হয়। যখন তিনি কঠোর পরিশ্রম করে তার পরিবারের সবার চাহিদা সহজে মেটাতে পারে।পরিশ্রম করে একজন টোকাই হয়তোবা  বিত্তবান হতে পারে না তবে টোকাই তার জীবনকে সবসময় সুখী হিসেবে আমাদের সমাজের কাছে পেশ করতে পারে।কিন্তু যখন একজন, বিত্তবান গরীব হয়ে যায় তখনই তিনি বুজতে পারে একজন টোকাই এর জীবন কিভাবে অতিবাহিত হয়। 

আসলে সবার জীবন এমন ভাবেই অতিবাহিত হয়। আজ কেউ ধনী, আবার কাল সেই ব‍্যাক্তি গরীব হয়ে যায়। ভাঙাগড়ায় জীবন চলে,আর জীবন জীবনের মতোই চলে। কিন্তু যুদ্ধটা সবাইকেই করতে হয়। কেউ জেতে আবার কেউ জীবন যুদ্ধে হারে।

নবীন লেখক মোঃ ফিরোজ খান
ঢাকা বাংলাদেশ

লাকসামে অবশেষে নৌকার চুড়ান্ত মাঝি হিসেবে মনোনয়ন পেতে যাচ্ছে

লাকসামে অবশেষে নৌকার চুড়ান্ত মাঝি হিসেবে মনোনয়ন পেতে যাচ্ছে


মো: রবিউল হোসাইন সবুজ,লাকসাম প্রতিনিধি:
কুমিল্লার লাকসাম পৌরসভার আসন্ন নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামী লীগের ৩ জন প্রার্থীর নাম প্রস্তাব করা হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার (৩ ডিসেম্বর) বিকেলে পৌরসভা আওয়ামীলীগের জরুরি বর্ধিত সভায় এ সিদ্ধান্ত হয়। মেয়র প্রার্থীরা হলেন, বর্তমান মেয়র ও উপজেলা যুবলীগ আহবায়ক অধ্যাপক মো. আবুল খায়ের, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ও পৌরসভা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক মহব্বত আলী ও উপজেলা আওয়ামী লীগ সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট মো. রফিকুল ইসলাম হিরা। এ তিনজনের নাম চূড়ান্ত করে প্রথমে জেলা আওয়ামী লীগ ও পরে দলের হাই-কমান্ডের কাছে পাঠানো হবে।
পৌরসভা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি গোলাম রাব্বানীর সভাপতিত্বে বর্ধিত সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট ইউনুছ ভূঁইয়া। সভায় আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনের শীর্ষ নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
বর্ধিত সভায় অধ্যাপক মো. আবুল খায়ের ও অ্যাডভোকেট মো. রফিকুল ইসলাম হিরা তাদের নিজ নিজ প্রার্থীতা ঘোষণা করেন। অপরদিকে আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ তাদের বক্তব্যে মেয়র প্রার্থী হিসেবে মহব্বত আলীর নামও প্রস্তাব করেন।
উল্লেখিত ৩ প্রার্থীর নাম প্রথমে জেলা কমিটি বরাবরে প্রেরণ করা হবে। পরবর্তীতে দলের হাই কমান্ডের কাছে পাঠানোর পর একজনকে চূড়ান্ত মনোনয়ন দেয়া হবে বলে সূত্রে জানা গেছে।
উল্লেখ্য, প্রথম ও দ্বিতীয় ধাপে লাকসাম পৌরসভার নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করা না হলেও তৃতীয় ধাপে এ পৌরসভা নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার সম্ভাবনা রয়েছে।

কালীগঞ্জে ট্রেনে কাটা পড়ে দুই জনের মৃত্যু

কালীগঞ্জে ট্রেনে কাটা পড়ে দুই জনের মৃত্যু

মোঃ রশিদুল ইসলাম রিপন, লালমনিরহাট জেলা প্রতিনিধি। আজ শুক্রবার (৪ ডিসেম্বর) সকালে ও দুপুরে লালমনিরহাট-বুড়িমারী রেলরুটের কালীগঞ্জ উপজেলার কাকিনা  রেলস্টেশনের দুই দিকে ট্রেনে কাটা পড়ে রহিদুল ইসলাম ইমরান (২৫) নামে এক মোটরসাইকেল আরোহীসহ মোট  দু’জনের মৃত্যু হয়েছে।

নিহত ইমরান উপজেলার দলগ্রাম ইউনিয়নের সাদেকুল ইসলাম রইসুলের ছেলে। অপর জনের নাম-পরিচয় পাওয়া যায়নি। তবে তিনি মানসিক ভারসাম্যহীন বলে জানা গেছে।

স্থানীয়রা জানান, লালমনিরহাট থেকে ছেড়ে আসা বুড়িমারীগামী লোকাল ট্রেনটি সকালে কাকিনা স্টেশন অতিক্রম করছিল।

লালমনিরহাট-বুড়িমারী মহাসড়ক ক্রসিংয়ে এক বুদ্ধি প্রতিবন্ধী পথচারী ওই ট্রেনে কাটা পড়ে মারা যান। আবার একই ট্রেনটি লালমনিরহাট অভিমুখে ফেরার পথে একই এলাকার কাকিনা স্টেশন অতিক্রম করে শান্তিগঞ্জ বাজারে মোটরসাইকেল আরোহী ইমরান কাটা পড়ে মারা যান।কালীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আরজু মোঃ সাজ্জাদ হোসেন জানান, বিষয়টি লালমনিরহাট রেলওয়ে থানাকে জানানো হয়েছে।

লোহাগড়ায় এক গৃহবধু সহ তিন সন্তানকে মারপিট, শ্লীলতাহানী

লোহাগড়ায় এক গৃহবধু সহ তিন সন্তানকে মারপিট, শ্লীলতাহানী


মো: আজিজুর বিশ্বাস ষ্টাফ রিপোর্টার নড়াইল।।
নড়াইলের লোহাগড়া পৌরসভার রাজুপুর গ্রামে এই মারপিটের ঘটনা ঘটেছে। 
অভিযোগ ও পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, গতকাল ০৪(ডিসেম্বর) শুক্রবার জুমার নামাজ পর রাজপুর গ্রামের জাহাঙ্গীর মন্ডলের বাড়িতে প্রবেশ করিয়া অভিযুক্ত একই গ্রামের জিল্লুর রহমান(৪০), মিহির বিশ্বাসের ছেলে মেহেরাব বিশ্বাস (৪০), মফি শেখের ছেলে সজিব শেখ, জহুর শেখের ছেলে লিমন শেখ, ওলিয়ার মৃধার ছেলে মিল্কি মৃধা, হিরু শেখের ছেলে হামিম শেখ এ ঘটনা ঘটিয়েছে।

 অভিযুক্তরা জাহাঙ্গীর মন্ডল, তার স্ত্রী ও তিন কন্যাকে মারপিট করেছে এবং তার এক কন্যাকে ঘরের মধ্যে আটকে  মারপিট ও শ্লীলতাহানী করেছে। এসময় অভিযুক্তরা জাহাঙ্গীর মন্ডলের বাড়ীঘর ভাংচুর ও লুটপাট করেছে।
জাহাঙ্গীর বিশ্বাসের স্ত্রী গুরুতর জখম হওয়ায় তাকে লোহাগড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এই ঘটনায় লোহাগড়া থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।লোহাগড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সৈয়দ আশিকুর রহমান জানান অভিযোগ পেয়েছি তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

ঝিকরগায় শহীদ শেখ ফজলুল হক মনির ৮১তম জন্মদিন পালিত

ঝিকরগায়  শহীদ শেখ ফজলুল হক মনির ৮১তম জন্মদিন পালিত

মোঃ ইকরামুল করিম সৈকত, ঝিকরগাছা প্রতিনিধিঃ ঝিকরগাছায় মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক ও আওয়ামী যুবলীগের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান শহীদ শেখ ফজলুল হক মণির ৮১তম জন্মদিন পালিত হয়েছে। 
শুক্রবার সন্ধ্যায় ঝিকরগাছা ভাই ভাই মার্কেটের দ্বিতীয়তলায় শহীদ শেখ ফজলুল হক মনির জন্মদিন উপলক্ষে উপজেলা আওয়ামী লীগের অস্থায়ী কার্যালয়ে কেক কাটা ও দুয়া অনুষ্ঠানের আয়োজন করে ঝিকরগাছা উপজেলা আওয়ামী যুবলীগ। যশোর জেলা যুবলীগের সহ-সভাপতি আজহার আলীর সভাপতিত্বে এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক কমিটির সদস্য সাজ্জাদুল আলম, রফিকুল ইসলাম বাপ্পী, শামীম রেজা, সেলিম রেজা, শাহেদুর রহমান শিপলু, জাফিরুল হক, আব্দুল বারিক, আব্দুল জব্বার, আবু জাফর মনি, জাহাঙ্গীর আলম, মনিরুজ্জামান সোহাগ, জুলফিকার আলী ভুট্টো, পৌর যুবলীগের আহবায়ক ইকরামুল হক খোকন, যুবলীগ নেতা আযহারুল ইসলাম লাবু, ইমামুল হাবীব জগলু, নজরুল ইসলাম, ফারুক হোসেন।উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি এহসানুল হাবীব শিপলু, সাধারণ সম্পাদক কামাল হোসেন, প্রেসক্লাবের সভাপতি এনামুল হাসান সবুজ, সাধারণ সম্পাদক ইমরান রশীদ। সাবেক ছাত্রনেতা রফিকুল ইসলাম, আসাদুল ইসলাম মিন্টু। উপজেলা ছাত্রলীগ নেতা হৃদয়, হান্নান, সৈকত, আরিফ, নাহিদ, আকিব, রাহুল, সজিব, রবিন, ইমরান, রাজ প্রমুখ। নাভারণ ইউনিয়ন ছাত্রলীগের আহবায়ক ইমামুল হাসান শুভ, যুগ্ম-আহবায়ক হেদায়েত, গদখালি ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি ইমন শেখ, সম্পাদক বিপ্লব শেখ, পানিসারা ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি শাহরিয়ার নীলয়, সম্পাদক মোঃ তুষান, ঝিকরগাছা ইউনিয়ন ছাত্রলীগের আহবায়ক সোহেল রানা, যুগ্ম-আহবায়ক উসমান।

বিএসপির সাহিত্য সভা ও মাস্ক বিতরণ অনুষ্ঠিত

বিএসপির সাহিত্য সভা ও মাস্ক বিতরণ অনুষ্ঠিত



সুমন হোসেন, যশোর জেলা প্রতিনিধিঃ বিদ্রোহী সাহিত্য পরিষদ (বিএসপি) যশোরের ২০২তম মাসিক সাহিত্য সভা ও বিনামূল্যে মাস্ক বিতরণ অনুষ্ঠান শুক্রবার সকালে প্রেসক্লাব যশোরে অনুষ্ঠিত হয়েছে। এসময় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) শাম্মী ইসলাম।
সংগঠনের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি কাজী রকিবুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ ড. মো. মুস্তাফিজুর রহমান, বিশিষ্ট কলামিস্ট আমিরুল ইসলাম রন্টু, ড. শাহনাজ পারভীন, আইনজীবী ও সাপ্তাহিক রেড নিউজ পত্রিকার সম্পাদক শেখ তাজ হোসেন তাজু, বিএসপির সাবেক সভাপতি অধ্যাপক মোঃ সামসুজ্জামানের স্ত্রী শাহানা পারভীন।
পরিষদের সাধারণ সম্পাদক গোলাম মোস্তফা মুন্না'র পরিচালনায় অনুষ্ঠানে কবিতা পাঠ ও আলোচনায় অংশ নেন, প্রফেসর (অব:) মোঃ মনিরুজ্জামান, রবিউল ইসলাম সজল, আহমদ রাজু, আবুল হাসান তুহিন,  আহমেদ মাহাবুব ফারুক, অ্যাড. মাহমুদা খানম, পারভীনা খাতুন, মুহাম্মদ হাতেম আলী সরদার, শাহরিয়ার সোহেল, ফাতিমা পারভীন, রাজপথিক, শংকর নিভানন, এএমএম মোমিন যশোরী, সানজিদা ফেরদৌস, তোফাজ্জেল হোসেন মানিক, মাহাবুবুল হক রবি, নজরুল ইসলাম প্রমুখ।
কবিতা পাঠ ও আলোচনা সভার আগে প্রধান অতিথি অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) শাম্মী ইসলাম প্রেসক্লাব যশোরের সামনে মুজিব সড়কে পথচারীদের মাস্ক পরিয়ে দেন। এসময় সবাইকে মাস্ক পরার আহবান জানিয়ে তিনি বলেন, মাস্ক ছাড়া কেউ বের হবেন না। সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে চলতে হবে। মহামারি করোনার প্রথম ঢেউ মোকাবেলা করতে আমরা সবাই সক্ষম হয়েছি। এসময় আমাদের আপনজন অনেককে হারিয়েছি। তাই পূর্বের অভিজ্ঞতার আলোকে দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবেলা করতে হবে। নিজে মাস্ক ব্যবহার করতে হবে এবং অপরকে মাস্ক ব্যবহারে উৎসাহিত করতে হবে।
সম্প্রতি বিদ্রোহী সাহিত্য পরিষদের আজীবন সদস্য কবি ড. শাহনাজ পারভীন বিটিই কর্তৃক সম্মাননা পাওয়ায় অনুষ্ঠানে সংগঠনের পক্ষে তাকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানানো হয়।

কয়রায় দূর্বৃত্তের হামলায় সাংবাদিক সুভাস দত্ত গুরুতর যখম

কয়রায় দূর্বৃত্তের হামলায়  সাংবাদিক সুভাস দত্ত গুরুতর যখম

কয়রা(খুলনা) প্রতিনিধি : কয়রায় দূর্বৃত্তের হামলায় দৈনিক সমাজের কথা পত্রিকার সাংবাদিক সুভাষ দত্ত গুরুতর জখম হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে গত ৩ ডিসেম্বর রাত আনুমানিক সাড়ে আটটার দিকে উপজেলার বাসস্টা- এলাকায়। জানা গেছে, সাংবাদিক সুভাষ দত্ত পেশাগত দায়িত্ব পালন করে কয়রা সদরে ফিরে আসার সময় পথিমধ্যে দূর্বত্তরা তাকে চলন্ত মোটর সাইকেল থেকে নামিয়ে নিয়ে মারপিট করে গুরুতর জখম করে ফেলে রেখে যায়। এসময় এলাকাবসি তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। সেখানে তার অবস্থ'ার অবনতি হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরন করা হয়।  বর্তমানে সে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। এব্যাপারে কয়রা থানার অফিসার ইনচার্জ (তদন্ত) শাহাদাৎ হোসেন বলেন, 'বাস্টা-ে সাংবাদিক সুভাষ দত্তের উপর হামলার ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। এ ঘটনায় একজনকে আটক করা হয়েছে এবং বাকী আসামীদের আটকের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

মোংলা পৌর নির্বাচন উপলক্ষে আওয়ামীলীগের দলীয় মনোনয়ন ফরম বিতরন

মোংলা পৌর নির্বাচন উপলক্ষে আওয়ামীলীগের দলীয় মনোনয়ন ফরম বিতরন

মোঃএরশাদ হোসেন রনি, মোংলাঃ দীর্ঘ ১১ বছর পর হতে যাচ্ছে মোংলা পৌর সভা নির্বাচন।অনেক বছর পর নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে বলে জনগনের মধ্যে বইছে এক অন্য রকম আনন্দ। দীর্ঘ দিন পরে হলেও তারা যে তাদের ভোটাধিকার ফিরে পাচ্ছে এ আনন্দেই ভোটাররা আত্নহারা।এদিকে প্রার্থীরা ও আর সময় নষ্ট করতে রাজি নন।নির্বাচন এর তফসিল ঘোষনা হওয়ার সাথে সাথেই তারা শুরু করে দিয়েছে তাদের নির্বাচনীয় কার্যক্রম।ভোটারদের আর প্রার্থীদের এ ব্যাস্ততার কারনেই মোংলায় বইছে এক অন্য রকম নির্বাচনি হাওয়া।

এদিকে রাজনৈতিক দল গুলো আবার নির্বাচনকে দেখছে অন্য রকম ভাবে। ১৯৯১ সাল থেকে আজ পর্যন্ত মোংলা রামপাল( বাগেরহাট ৩ ) এই আসনটির সংসদ সদস্য পদ আওয়ামিলীগের দখলে। এটা আওয়ামীলীগ এর দূর্গ হিসাবে পরিচিত। কিন্তু মোংলা পৌর সভা সম্পূর্ণ ব্যাতিক্রম। এখানে মেয়র হিসারে বেশির ভাগ সময় নির্বাচিত  হয়েছে বি এন পি প্রার্থী।আওয়ামীলীগ প্রার্থী নির্বাচিত না হওয়ার মূল কারন হিসাবে দলীয় অভ্যন্তরিন কোন্দলকেই দাই করেছেন আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দ। সর্বশেষ নির্বাচনে ও এখানে নির্বাচিত হয়েছে বি এন পি প্রার্থী মোংলা পৌর বি এন পি'র সাধারন সম্পাদক আলহাজ্ব জুলফিকার আলী। তাই এবারের নির্বাচনের পূর্ব থেকেই আওয়ামিলীগ নেতৃবৃন্দ ভাবছে দলের ভিতরের  সকল কোন্দল দূর করে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করে  ভোটের মাধ্যমে তাদের নির্বাচিত প্রার্থীকে বিজয়ী করে পৌরসভাটি তাদের দখলে নেওয়ার। তাই তারা তাদের দলীয় প্রার্থী বাছাইয়ের কার্যক্রম ইতিমধ্যে শুরু করে দিয়েছে।১৬ ই জানুয়ারীর পৌরসভা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে গত ২রা ডিসেম্বর আওয়ামীলীগ এর এক বিশেষ বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত হয়।সেখানে মেয়র প্রার্থী হিসেবে আগ্রহীদের নাম নেয়া হয়।এবং সেইদিনই আগ্রহী প্রার্থীদের  নাম কেন্দ্রে পাঠানো হয়েছে সেখান থেকে যাকে মনোনীত করা তবে তাকেই আওয়ামীলীগ এর মেয়র হিসাবে দলীয় মনোনয়ন দেয়া হবে। আর আজ ৪ঠা ডিসেম্বর কমিশনার প্রার্থীদের জন্য দলীয় ফরম বিতরন করেন আওয়ামিলীগ নেতৃবৃন্দ     মোংলা উপজেলা ও পৌর আওয়ামীলীগ এর নিজস্ব কার্যালয়ে সকাল ৯টা থেকে বিক্রি শুরু করে বিকাল ৪টা পর্যন্ত চলে এ মনোনয়ন ফরম  বিক্রির কার্যক্রম। এসময় প্রতি ওয়ার্ড থেকে  কাউন্সিলর প্রার্থীরা মোংলা উপজেলা আওয়ামিলীগ এর দলীয় কার্যালয়ে এসে তাদের দলীয় মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেন।সংগ্রহ করা ফরম যাচাই বাছাই করে প্রতি ওয়ার্ডে এক জন করে দলীয় প্রার্থী দিবে বলে জানিয়েছে আওয়ামীলীগ এর উর্ধতন নেতৃবৃন্দ।          

আওয়ামীলীগের দলীয় মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করা একজন কাউন্সিলর প্রার্থী শেখ আল মামুন বলেন আমি ছাত্রজীবন থেকেই আওয়ামিলীগের রাজনীতির সাথে জড়িত। আমি ২০০৫ সাল থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত ছাত্রলীগ মোংলা পৌর শাখার সভাপতির দায়িত্ব পালন করি। ২০১৮ সাল থেকে এখনো পর্যন্ত মোংলা পৌর যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক এর দায়িত্ব পালন করতেছি।আগামী ১৬ই জানুয়ারী মোংলা পৌরসভার নির্বাচনে ৮নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদে দলীয়  প্রার্থী হতে চাই। তাই আজ দলীয় মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছি। দল যদি আমাকে মনোনয়ন দেয় তা হলে আমি নির্বাচন করবো।আর যদি মনোনয়ন না পাই তা হলে দলীয় সিদ্ধান্ত মেনে যে মনোনয়ন পাবে তার পক্ষে কাজ করবো। 

মনোনয়ন পত্যাশি আরেক প্রার্থী এইচ এম কবির বলেন আমি দীর্ঘ দিন যুবলীগের রাজনীতির সাথে জড়িত আমি ১৯৯৫ সাল থেকে ২০০৫ সাল পর্যন্ত ১নং ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি হিসাবে দায়িত্ব পালন করি।এরপর ২০০৫ সাল থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত যুবলীগ মোংলা পৌর শাখার যুগ্ম আহবায়ক হিসাবে দায়িত্ব পালন করি। ২০১৮ সালে আমি যুবলীগের সহ সভাপতি নির্বাচিত হই।বর্তমানে আমি মোংলা পৌর যুবলীগের সভাপতির দায়িত্ব পালন করছি।   মোংলা পৌরসভার নির্বাচনে ১নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদে দলীয়  প্রার্থী হতে চাই। তাই আজ দলীয় মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছি। দল যদি আমাকে মনোনয়ন দেয় তা হলে আমি নির্বাচন করবো।আর যদি মনোনয়ন না পাই তা হলে দলীয় সিদ্ধান্ত মেনে যে মনোনয়ন পাবে তার পক্ষে কাজ করবো।  


মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ  ও আওয়ামিলীগ এর দলীয় প্রার্থী কিভাবে নির্বাচন করা হবে এ বিষয়ে জানতে চাইলে মোংলা পৌর আওয়ামীলীগ এর সভাপতি ও মনোনয়ন সংগ্রহ কমিটির আহবায়ক শেখ আঃরহমান বলেন ৪ঠা ডিসেম্বর সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত মনোনয়ন ফরম বিতরন করা হয়। কাউন্সিলর প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন ৩৬ জন,মহিলা সংরক্ষিত প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন ১১জন।আজকে যারা মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন পত্যকেই আওয়ামীলীগ এর ত্যাগি নেতা কর্মী।পত্যেকেরই দলের প্রতি ত্যাগ রয়েছে।তারপরও আওয়ামীলীগ একটা বড় সংগঠন। তাই এখানে যোগ্য নেতার সংখ্যাও বেশী।অবশ্যই যাচাই বাছাই এর মাধ্যমে আওয়ামিলীগ এর নীতিনির্ধারণী ফোরাম যোগ্য ব্যাক্তিদের মনোনয়ন দিবেন বলে আমি আশা রাখি। সকলের প্রতি আমার একটাই অনুরোধ যেহেতু প্রতি ওয়ার্ডে কাউন্সিলর হিসাবে  ১জনকেই দলীয় মনোনয়ন দেয়া হবে । তাই সকলে ঐক্যবদ্ধ ভাবে দলীয় প্রার্থীকে বিজয়ের জন্যই কাজ করবেন বলে আমি আশা রাখি।

কবি হিমেল বরকতের অকাল মৃত্যু বাংলা সাহিত্যের অপূরণীয় ক্ষতি- হাবিবুন নাহার

কবি হিমেল বরকতের অকাল মৃত্যু বাংলা সাহিত্যের অপূরণীয় ক্ষতি- হাবিবুন নাহার

মোঃএরশাদ হোসেন রনি, মোংলাঃ কবি হিমেল বরকতথর অকাল মৃত্যু বাংলা সাহিত্যের অপূরণীয় ক্ষতি। তাঁর লেখা কবিতা-গানে-প্রবন্ধে এবং গবেষণায় সুন্দরবন অঞ্চলের মানুষের জীবন-জীবিকা উঠে এসেছে। মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় ভাস্বর প্রগতিশীল তরুন প্রতিশ্রুতিশীল কবি হিমেল বরকত তাঁর সাহিত্যকর্মের মাধ্যমেই মানুষের মাঝে বেঁচে থাকবেন। ৪ ডিসেম্বর শুক্রবার বিকেলে মোংলার সেন্ট পল্স হলরুমে কবি , গবেষক, জাহঙ্গীরনগর বিশ্ব বিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের অধ্যাপক রুদ্র অনুজ ড. হিমেল বরকত এঁর অকাল প্রয়াণে হিমেল বরকত নাগরিক শোকসভা কমিটি আয়োজিত নাগরিক শোকসভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের  উপমন্ত্রী বেগম হাবিবুন নাহার এমপি একথা বলেন।  

শুক্রবার বিকেল সাড়ে ৩টায় অনুষ্ঠিত শোক সভায় সভাপতিত্ব করেন নাগরিক শোকসভা কমিটির আহ্বায়ক মোংলা সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ মোঃ গোলাম সরোয়ার। শোক সভায় বক্তব্য রাখেন উপজেলা চেয়ারম্যান আবু তাহের হাওালাদার, উপজেলা নির্বাহি অফিসার কমলেশ মজুমদার, উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি অধ্যক্ষ সুনীল কুমার বিশ্বাস, সেন্ট পল্স উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রাক্তন প্রধান শিক্ষক ফ্রান্সিস সুদান হালদার, গণশিপী  সংস্থার সভাপতি সুভাষ চন্দ্র বিশ্বাস, মোংলা প্রেসক্লাব সভাপতি এইচ এম দুলাল, কবি মুশফিকুর রহমান টুকু, কবি জেম্স শরৎ কর্মকার, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মোঃ ইকবাল হোসেন, পৌর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক সেখ কামরুজ্জামান জসিম, অধ্যপক শেখ নজরুল ইসলাম, কবি আফরোজা হীরা, কবি হিমেল বরকত এঁর বন্ধু জানে আলম বাবু প্রমূখ। শোক সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন নাগরিক শোকসভা কমিটির সদস্য সচিব সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের আহ্বায়ক মোঃ নূর আলম শেখ। শোক সভা পরিচালনা করেন মোংলা সরকারি কলেজের বাংলা বিভাগের প্রভাষক মনোজ কান্তি বিশ্বাস ও গীতিকার মোল্লা মামুন। নাগরিক শোক সভায় কবি হিমেল বরকত এঁর লেখা গান পরিবেশন করেন গণসঙ্গীত শিল্পী গোলাম মহম্মদ, মিজানুর রহমান বুলবুল, জীবনানন্দ অধিকারী, শেখ আব্দুল জব্বার, শ্রীবাস বাউল প্রমূখ। উল্ল্যেখ্য কবি ড. হিমেল বরকত গত ২২ নভেম্বর হৃদযন্ত্রেও ক্রীয়া বন্ধ হয়ে ঢাকার বারডেম হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করে

অসহায়ে চক্ষু মেলো পরিবারের প্রথম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উৎযাপন-২০২০

 অসহায়ে চক্ষু মেলো পরিবারের প্রথম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উৎযাপন-২০২০


জিহাদুল ইসলাম , স্টাফ রিপোর্টারঃ আজ ৪ ডিসেম্বর ২০২০ ইং গাছুয়া আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে অসহায়ে চক্ষু মেলো পরিবারের প্রথম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী  উৎযাপন করা হয়। 

উক্ত অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন  ওমর ফারুক ফিরোজ, কাউছার মনির, তানজিদ হাসান রাজু , মোঃ রনি,  সাহেদ রুহী এবং উক্ত সংগঠনের বিভিন্ন সদস্যবৃন্দ। 

দিনব্যাপি আয়োজনে কেক কেটা , এতিম ও পথচারীদের মাঝে খাবার বিতরণ, শীতবস্ত্র বিতরণ, এবং   বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে বৃক্ষ  রোপনের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি হয়।

লোহাগড়া রামকান্তপুর গ্রামে এম কে এইচ কে নামে অবৈধ ইটের ভাটা গড়ে উঠেছে

লোহাগড়া রামকান্তপুর গ্রামে এম কে এইচ কে নামে অবৈধ ইটের ভাটা গড়ে উঠেছে


মো: আজিজুর বিশ্বাস ষ্টাফ রিপোর্টার নড়াইলঃ নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলার শালনগর ইউনিয়নের রামকান্তপুর গ্রামে গড়ে তুলেছে সরকারের অনুমোদন বিহিন এম কে এইচ কে অবৈধ ইটের ভাটা।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, অাট একর জমির উপরে গড়ে তুলেছে এই অবৈধ ইট,ভাটা, প্রতিদিন প্রকৃতিকে নিধন করে এই ভাটায় পুড়ানো হয় হাজার মন কাট, এবং দূষিত হচ্ছে এলাকার পরিবেশ, এই ভাটায় এক সিজনে পুড়ানো হয় প্রায় ১ কোটি  ইট,।সেখানে  প্রতি সিজনে পুড়ছে হাজার হাজার মন জ্বালানি ধংস হচ্ছে পরিবেশ হুমকির  সম্মুখীন আশেপাশের পরিবার।

এই এবিষয়ে কথা হয় এম কে এইচ কে ইট ভাটার মালিক মো: মুক্তি গাজীর সাথে, তিনি সাংবাদিকদের বলেন অামার ভাটার কোনো অনুমোদন কাগজ পত্র নেই, অাপনারা লেখা লেখি না করলে হয় না, ভাটা করছি বলে অাপনারা লিখবেন,ঠিক অাছে অাপনারা  সাংবাদিক তো লিখেন। 

ভাস্কর্য নিয়ে ধর্মীয় সাম্প্রদায়িক গোষ্ঠী বিতর্কের সৃষ্টিকরছে-মজনু

ভাস্কর্য নিয়ে ধর্মীয় সাম্প্রদায়িক গোষ্ঠী বিতর্কের সৃষ্টিকরছে-মজনু

মোঃ সবুজ মিয়া বগুড়া প্রতিনিধিঃগুড়া জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মজিবুর রহমান মজনু বলেছেন, “শেখ হাসিনার মূলনীতি গ্রাম শহরের উন্নতি” বর্তমান সরকার উন্নয়নে বিশ্বাসী। গত ৫ বছরে শিবগঞ্জ পৌরসভাসহ সারা দেশে যে উন্নয়নমূলক কাজ করা হয়েছে, বিগত সরকারের আমলে তার এক অংশও কাজ করা হয়নি। বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য নিয়ে একটি ধর্মীয় সাম্প্রদায়িক গোষ্ঠি যে অনাহুত বিতর্কের সৃষ্টি করছে, তার ভিন্ন কোনো উদ্দেশে থাকতে পারে। তিনি বলেন, ভাস্কর্য নিয়ে মনগড়া ব্যাখ্যা, মুক্তিযোদ্ধার চেতনা ও দেশের সংস্কৃতির প্রতি চ্যালেঞ্জ। স্বাধীন বাংলাদেশের স্থপতি বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য নিয়ে একটি মহল ইসলামের অপব্যাখ্যা দিয়ে ধর্ম প্রিয় মানুষের মনে বিদ্বেষ ছড়ানোর অপচেষ্টা করছে।

বৃহস্পতিবার বিকেলে বগুড়ার শিবগঞ্জ পৌর এলাকার ভুরঘাটা গাংনাই নদীর ওপর ৩ কোটি ৬ লাখ টাকা ব্যয়ে ৪৫ মিটার আরসিসি গার্ডার সেতুর ভিত্তিপ্রস্থর স্থাপন উপলক্ষে স্থানীয় স্কুল মাঠে এক সুধী সমাবেশে প্রধান অতিথি বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। 

তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার মানেই উন্নয়নের সরকার, তাই জননেত্রী শেখ হাসিনার এই উন্নয়ন কর্মকান্ডের সঙ্গে আপনাদেরকে হাত বাড়িয়ে দিতে হবে। তবেই এই উন্নয়নের ধারা অব্যাহত থাকবে। তিনি আরো বলেন, বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়ার স্বপ্ন পূরণে জননেত্রী শেখ হাসিনা ডিজিটালের মাধ্যমে সোনার বাংলা গড়ার কাজ করে যাচ্ছেন।

এর আগে জাতীয় সংসদের সরকারদলীয় হুইপ আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন এমপি সেতুটির ভিত্তিপ্রস্থর স্থাপন করার কথা ছিল। কিন্তু তিনি বৃহস্পতিবার হঠাৎ করেই অসুস্থ হয়ে পড়ায় অনুষ্ঠানে আসতে না পেরে মজিবুর রহমান মজনুর ওপর দায়িত্ব দেন।

পৌর মেয়র তৌহিদুর রহমান মানিকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন বগুড়া আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক রাগেবুল আহসান রিপু, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি টি জামান নিকেতা, জেলা আওয়ামী লীগ নেতা জাকির হোসেন নবাব, শাহরিয়া কবির ওপেল, আল রাজি জুয়েল, মাশরাফি হিরো, আবুল কাশেম ফকির, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আজিজুল হক, সাধারণ সম্পাদক মোস্তাফিজার রহমান মোস্তা, ভাইস চেয়ারম্যান রিজ্জাকুল ইসলাম রাজু, ইউপি চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম শফি, এসএম রূপম, আওয়ামী লীগ নেতা হাবিবুল আলম, এমদাদুল হক, আব্দুল মান্নান, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি আমিনুল হক দুদু, কৃষক লীগের সভাপতি লুৎফর রহমান, যুবলীগ নেতা আব্দুস ছাত্তার, জেলা পরিষদের সদস্য আব্দুল করিম, পৌর কাউন্সিলর হারুনুর রশিদ, আবু সাঈদ, সাইফুল ইসলাম ও মাজেদা বেগম।

উল্লেখ, পৌর সভার ভুরঘাটা-চাউলাপাড়া এলাকায় গাংনই নদীর ওপর ৪৫ মিটার আরসিসি গার্ডার সেতুর নির্মাণে ৩ কোটি ৬ লাখ বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। সেতুটির নির্মাণ কাজের দায়িত্ব পেয়েছেন ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান মেসার্স সাবরিনা ইন্টারন্যাশনাল।

লক্ষ্য যখন 'খ' ইউনিট

লক্ষ্য যখন 'খ' ইউনিট


এইচএসসি পরীক্ষার পরেই ভর্তি-ইচ্ছুক শিক্ষার্থীদের মধ্যে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষার প্রস্তুতি নেওয়া শুরু হয়। যাতে তারা তাদের প্রত্যাশিত বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সুযোগ করে নিতে পারে। ভর্তি পরীক্ষার সময়টা সর্বশেষ প্রস্তুতির সময়। ভর্তি পরীক্ষার এই সময়টাকে বলা হয় ভর্তিযুদ্ধ। আর এই ভর্তিযুদ্ধে জয়ী হতে প্রয়োজন সঠিক লক্ষ্য নির্ধারণ। তেমনি এই ভর্তিযুদ্ধে যারা মানবিক বিভাগ থেকে ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করবে তাদের জন্য রয়েছে 'খ' ইউনিট। এই ইউনিটে বাংলা, ইংরেজি ও সাধারণ জ্ঞান (বাংলাদেশ ও আন্তর্জাতিক) থেকে প্রশ্ন হয়। আর এবার অনলাইনে প্রস্তুতিটাও নিতে হবে জোড়ালো, গুছিয়ে নিতে হবে পড়াশোনাটাও।

বাংলা পাঠ্যবই খুবই গুরুত্বপূর্ণ, তবে এখন পুরো বই পড়ে সময় নষ্ট না করে বিশেষ বিশেষ অধ্যায়ের ওপর নজর দিতে হবে। আর বাংলা ব্যাকরণের ক্ষেত্রে সন্ধি, উপসর্গ, সমাস- এগুলোর ওপর বিশেষ গুরুত্ব দেওয়া উচিত। সাধারণ জ্ঞানের কিছু বাছাই করা বিষয় না পড়ে সব বিষয়েই চোখ বোলানো উচিত। পত্রিকা পড়া আর নেটে সাম্প্রতিক বিষয়গুলোর ওপর বিশেষ নজর রাখতে হবে। ইংরেজির ক্ষেত্রে গ্রামার সাইটগুলো একটু ভালো করে ঝালিয়ে নিতে হবে। আর যেহেতু লিখিত পরীক্ষা যুক্ত করা হয়েছে, তাই ইংরেজিতে ভালো করার বিকল্প নেই। নিয়মিত অনুশীলন করলে ইংরেজিতে ভালো করা সম্ভব।

প্রস্তুতির ক্ষেত্রে:::::
-উচ্চমাধ্যমিকের পাঠ্যবইয়ের কোনো বিকল্প নেই।
-বাংলা, ইংরেজি, সাধারণ জ্ঞান প্রতিটি বিষয়ের প্রতি সমান গুরুত্ব দিতে হবে।
-কোচিং সেন্টারকে দিকনির্দেশক, প্রশ্নব্যাংককে গাইডলাইনস ভেবে স্বনির্ভর হতে হবে।
-সময় নষ্ট না করে আত্নবিশ্বাসী ও পরিশ্রমের মাধ্যমে কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্যে পৌঁছাতে হবে।

আত্মবিশ্বাস ধরে রাখলে সফলতা আসবেই। নিয়মমাফিক পরিশ্রমের পাশাপাশি কৌশলীও হওয়া প্রয়োজন। অপ্রয়োজনে ফোন ব্যবহার না করে সময়ের সঠিক ব্যবহার করে অনুশীলন সম্পর্কে সচেতন এবং নিজের উপর আত্নবিশ্বাস রেখে কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্য ঠিক রেখে সামনে এগিয়ে যেতে নিজের সর্বোচ্চ চেষ্টা করতে হবে। ভর্তি পরীক্ষায় প্রশ্ন যাই হোক, ভয় পাওয়ার কোনো কারণ নেই। আত্মবিশ্বাসটা ধরে রাখো, সফলতা আসবেই ইনশাল্লাহ। মহামারীর এই সময়ে সৃষ্টিকর্তাকে স্মরণ করে ভর্তি পরীক্ষার অপেক্ষা না করে প্রস্তুতি চালিয়ে যেতে হবে।

মেহেরাবুল ইসলাম সৌদিপ
শিক্ষার্থী, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়

জবির রোভার স্কাউটের নির্বাচন, শেয়ালের কাছে মুরগী পোষানি!

জবির রোভার স্কাউটের নির্বাচন, শেয়ালের কাছে মুরগী পোষানি!

জবি প্রতিনিধি:জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় (জবি) রোভার স্কাউটের নির্বাচনে অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। অভিযোগের তীর খোদ নির্বাচন কমিশনারের বিরুদ্ধেই। অভিযোগ নিয়মবহির্ভূতভাবে নির্বাচনে হস্তক্ষেপ করার। এ যেনো শেয়ালের কাছে মুরগী পোষানি দেওয়ার গল্প।

শুক্রবার (৪ ডিসেম্বর) অনুষ্ঠিত হচ্ছে জবি রোভারের নির্বাচন। প্রার্থীরা বলছেন, বর্তমান কমিটির সভাপতি আহসান হাবীব নির্বাচন কমিশনার হওয়া সত্ত্বেও পছন্দের প্রার্থীকে নির্বাচিত করতে নিয়ম ভেঙে কোমর বেঁধে নেমেছেন। পছন্দের প্রার্থী কামরুলকে পদ পাইয়ে দিতেই তার এই নীতিভঙ্গ। 

প্রার্থীরা জানান, ম্যানেজমেন্ট বিভাগের কামরুল ইসলামকে বিজয়ী করতে নির্বাচন কমিশনার দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে ভোটারদের নিজ খরচে ঢাকা আনছেন। ভোটারদের ভোট দিতে প্রভাবিত করছেন। এর প্রমাণসহ বেশ কিছু স্ক্রিনশর্ট প্রতিবেদকের হাতে এসেছে।

মূলত বিশ্ববিদ্যালয় ১১তম ব্যাচের শিক্ষার্থী ও নির্বাচনে হেভিওয়েট প্রার্থী নাজমুল হাসান মুন্নাকে সড়াতেই এই আয়োজন। স্ক্রিনশর্টগুলো থেকে এমনটাই জানা গেছে। ম্যাসেঞ্জার আলাপনে দেখা যায়, নির্বাচন কমিশনার আহসান হাবিব লিখেছেন, "ওকে (মুন্না) বাদ করতে হবে, ঐদিনের এটিটিউড দেখলেনা, ওকে রাখলে ঝামেলা হবে।"

এবিষয়ে নাজমুল হাসান মুন্না বলেন, বর্তমান সভাপতি তার নির্বাচনি আচরণ বিধিমালা ভঙ্গ করে নিজের মত করে জুনিয়রদের ফোন দিয়ে সরাসরি মোটিভেট করে ভোট চাওয়ার মত নীতি বর্হিভূত অচারনের মাধ্যমে সংগঠনকে কলঙ্কিত করেছেন। টাকা দিয়ে ভোটারদের ঢাকা আনার ব্যাবস্থার মাধ্যমে ভোট ক্রয়ের মত নীতিহীন কাজ করেছেন।

অভিযুক্ত নির্বাচন কমিশনার আহসান হাবীবের সাথে যোগাযোগ করতে মুঠোফোনে ফোন দেওয়া হলে তিনি বার বার ফোন কেটে দেন।

অনিয়মের বিষয়ে গ্রুপ সম্পাদক অধ্যাপক ড. মনিরুজ্জামান খন্দকারের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আমরা রোভারের ইলেকশনে শিক্ষকরা কোনো হস্তক্ষেপ করি না, শিক্ষার্থীরা নিজেদের মতো নির্বাচন করে, আমরা তাদের নির্দেশনা দিই যাতে শান্তিপূর্ণভাবে সম্পন্ন করে। তবে তেমন কিছু হয়ে থাকলে আমরা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নিবো।

দৌলতপুরে প্রকাশ্য দিবালোকে সন্ত্রাসী হামলা আহত- ১

দৌলতপুরে প্রকাশ্য দিবালোকে সন্ত্রাসী  হামলা আহত- ১


কুষ্টিয়া জেলা  প্রতিনিধি// কুষ্টিয়া দৌলতপুর উপজেলার তারাগুনিয়ার পাইকারি কাচা বাজারে প্রকাশ্য দিবালোকে সন্ত্রাসী হামলা হয়েছে বলে জানান বাজারে উপস্থিত ব্যবসায়ীরা।

ব্যবসায়ীরা আর জানান, প্রতিদিনের ন্যায় আজ বিকালে বাজার বসলে এক দল সন্ত্রাসী ব্যাটারি চালিত অটোতে এসে দেশীয় অস্ত্র নিয়ে বাজারে হামলা চালায় এবং প্রথমে রিপনের আড়তে হামলা চালায়। 

আড়তে কর্মরত লেবারা বাধা দিলে এলোপাথাড়ি কুপিয়ে লেবার পচুকে গুরুতর আহত করে এ সময় আমরা সকল ব্যবসায়ী ও উপস্থিত লোকজন ধাওয়া করলে তারা কিছু দেশীয় অস্ত্র ও অটোটি রেখে পালিয়ে যায়। 

এ বিষয়ে রিপন জানান, আমরা প্রতিদিনের ন্যায় ব্যবসা পরিচালনা করছি কিছু বুঝে উঠার আগে ৮ থেকে ১০ জনের মত লোক এসে আমার আড়তে হামলা চালায় এবং আমাকে টাকা হিচড়া করতে থাকে টাকা নেওয়ার জন্য আমাকে টানা হিচড়া করতে দেখে আমার লেবাররা বাধা দিলে পচু নামের এক জন লেবারকে কুপিয়ে জখম করেন এবং আমার কাছে থাকা ও ডয়ারে থাকা টাকা পয়সা লুটপাট করে নিয়ে যায়।

এ বিষয়ে সবজি বাজার ইজারাদার জনি  জানান, প্রতিদিন বাজারে বিকালে শত শত মন কাচা মরিচ ও অন্যান্য সবজি ক্রয় - বিক্রয় হয়  যা ঢাকা সহ দেশের বিভিন্ন প্রান্তে যায় সন্ত্রাসীরা পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে টাকা পয়সা লুটপাটের উদ্দেশ্যে হামলা চালায় চালায়। প্রকাশ্য দিবালোকে এই ধরনের সন্ত্রাসী হামলা আওয়ামীলীগ সরকার ক্ষমতায় আসার পরে আমাদের চোখে পড়েনি আমরা বিষয়টি তদন্ত করে বিচার দাবি করছি।

এ বিষয়ে দৌলতপুর থানা অফিসার ইনচার্জ জহুরুল আলম জানান,থানা পুলিশ ঘটনা স্থান থেকে কিছু দেশীয় অস্ত্র সহ একটি অটো গাড়ি উদ্ধার করেছে কিন্তু এখন প্রর্যন্ত কোন লিখিত অভিযোগ হয় নাই অভিযোগ পেলে  তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

কানাডা-প্রবাসী পারুল বেগম চিকিৎসা সহায়তায় অর্থ প্রদাণ করেন

কানাডা-প্রবাসী পারুল বেগম চিকিৎসা সহায়তায় অর্থ প্রদাণ করেন


মোঃ রবিউল হোসাইন সবুজঃইসলাম সব সময় ভ্রাতৃত্বের শিক্ষা দেয়। অসহায় অসচ্ছল মানুষের সেবায় এগিয়ে আসা ইসলামে অন্যতম ইবাদত। আল্লাহ যাকে অর্থ-সম্পদ দিয়েছেন তিনি সে সম্পদ থেকে অভাবী মানুষকে সাহায্য করলে তাতে আল্লাহতায়ালা খুশি হোন।

বৃহস্পতিবার বিকালে লাকসাম বেসরকারি  হসপিটালে কানাডা প্রবাসী পারুল বেগম এর একজন ছোটভাই গিয়ে এ চিকিৎসা সহায়তার টাকা তুলে দেন। 

পারুল বেগমের জন্মস্থান লাকসাম উপজেলা ৬নং ওয়ার্ড বাতাখালি গ্রামে। স্বামীর বাড়ি কুমিল্লায়। তিনি এখন বর্তমানে কানাডায় বসবাসরত আছেন। 

অজ্ঞাত ওই  মনোহরগঞ্জের অসহায় নারীকে দীর্ঘদিন ধরে ঢাকা,কুমিল্লা  চিকিৎসা দেন কিন্তু কোন সুফল ফেলেন না।  এরপর আবারো শরীলের অবস্থা অবনতি হলে তাকে লাকসাম বেসরকারি  মেডিকেলে ভর্তি করানো হয়। তখন আবারো বড় ধরনের অর্থ  জটিলতা দেখা দেয়। সেই প্রেক্ষিতে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে একটি অসহায় বোনের পাথর অপারেশন এরজন্য  সাহায্যে চেয়ে একটি পোস্ট করা হয় সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে। তখনই কানাডাপ্রবাসী পারুল বেগমের চোখে পড়লে! তাৎক্ষণিক  তিনি সরাসরি যোগাযোগ করে অর্থসহায়তা প্রদান করেন। 
এ সময় হাসপাতালে কর্তব্যরত চিকিৎসক কর্মকর্তাসহ অসহায় নারীর পরিবারের সবাই উপস্থিত ছিলেন।


স্থানীয় সূত্র জানায়, কুমিল্লার মনোহরগঞ্জের অসুস্থ ওই নারীর মত এককভাবে অসংখ্য অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে সহায়তা করেছেন কানাডা-প্রবাসী পারুল বেগম।

১.তিনি ১০ জন পিতা-মাতা হারা অসহায়, এতিম ছেলেকে সম্পূর্ণভাবে কোরআনে হাফেজ হিসেবে গড়ে তুলতে অর্থ দিয়ে পাশে থাকেন। 
২. এছাড়াও আরো ২৫ জন এতিম মেয়েদের বিয়ে দিয়েছেন নিজস্ব অর্থায়নে। 
৩. একজন অসুস্থ বিধবা নারীকে হাসপাতালে রেখে সম্পূর্ণভাবে সুস্থ করার জন্য যা যা করা দরকার করে ওই নারীকে সুস্থ করে বাড়িতে পাঠিয়েছেন। এবং পরবর্তী ভালো থাকার জন্য নানা সহযোগিতা করে যাচ্ছেন। 
৪. প্রতিবছর মাহে রমজানের গরীব দুস্থ মানুষের মাঝে ইফতারি বিতরণ করে থাকেন। 
৫. কুমিল্লা ও লাকসাম অনেক জায়গায় এতিমখানা,মসজিদ মাদ্রাসাসহ অসংখ্য স্থানে গোপনে দান করে যাচ্ছেন এ কানাডা-প্রবাসী পারুল বেগম।

এ ধরনের মানবিক কর্তব্য পালন রাত জেগে অবিরাম নফল নামাজ আদায় ও অবিরত নফল রোজার সমতুল্য।মানুষ সৃষ্টির সেরা জীব। সমাজে সেই মানুষেরই একটা অংশ গরীব-দুস্থ। তারা আমাদের সমাজের অবিচ্ছেদ্য অংশ। গরীব-দুস্থসহ সমাজের আশ্রয়হীন, দুর্বল ও অসহায় মানুষকে সাহায্য-সহযোগিতা করা ইসলামে অন্যতম ইবাদত। 
মহানবী (সা.) আরও বলেন, 'যে ব্যক্তি দুনিয়ায় অপরের একটি প্রয়োজন মিটিয়ে দেবে, পরকালে আল্লাহ তার ১০০ প্রয়োজন পূরণ করে দেবেন এবং বান্দার দুঃখ-দুর্দশায় কেউ সহযোগিতার হাত বাড়ালে আল্লাহ তার প্রতি করুণার দৃষ্টি দেন।

দান যেমন সমৃদ্ধি আনে তেমনি মর্যাদাও বৃদ্ধি করে। নিঃস্বার্থ ও নীরব দানের মাধ্যমে মানুষ তার মর্যাদার সর্বোচ্চ শিখরে যত তাড়াতাড়ি পৌঁছাতে পারে তা অন্য কোন পন্থায় সম্ভব হয় না। এর মর্যাদা এতই যে দানকারি কিয়ামতের দিন আল্লাহর আরশের ছায়ায় স্থান পাবেন।

দান করার জন্য কাউকে ধনী হবার প্রয়োজন নেই। সামর্থ্য অনুযায়ী একটি খেজুর দান করলেও আল্লাহ তা বৃদ্ধি করে পাহাড় পরিমাণ করে দিতে পারেন। যে দানে আন্তরিকতা যত বেশি আল্লাহর কাছে তার ওজন তত বেশি।দান পরকালের কঠিন সময়ে দোযখের আগুন থেকে রক্ষা করে, ইহকালে প্রাচুর্যময় ও দুশ্চিন্তাহীন মর্যাদাপূর্ণ জীবন উপহার দেয়।

কানাডা-প্রবাসী পারুল বেগম বলেনঃ  আমি গরীব,অসহায় মানুষের বন্ধু আমি যতদিন বাঁচবো ততোদিন নিজের সামর্থ্য অনুযায়ী সবসময় মানুষের পাশে থাকবো ইনশাআল্লাহ। 

আল্লাহ আমাদের সবাইকে বিপদগ্রস্ত ও অভাবী মানুষের প্রতি সহানুভূতিশীল হওয়ার এবং তাদের অভাবের দিনে হাত বাড়ানোর তওফিক দান করুন। আমীন।

সিরাজগঞ্জে কিশোরের মরদেহ উদ্ধার

সিরাজগঞ্জে কিশোরের মরদেহ উদ্ধার

মাসুদ রানা সিরাজগঞ্জ জেলাপ্রতিনিধিঃ সিরাজগঞ্জে সদর উপজেলার শিয়ালকোল ইউনিয়নে মোঃ শরিফুল ইসলাম (১৪) নামের এক কিশোরের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।
শুক্রবার সকালে উপজেলার নতুন ফুলবাড়ী পূর্বপাড়া খড়ের গাদার মধ্যে থেকে এ মরদেহ উদ্ধার করা হয়।
মৃত শরিফুল ইসলাম নতুন ফুলবাড়ী পূর্বপাড়া গ্রামের ইলেকষ্ট্রিক মিস্ত্রি ওয়াসিম শেখের ছেলে।
নিহতের পরিবারের লোকজন জানান, শরিফুল বৃহস্পতিবার রাত থেকে নিখোঁজ ছিল। তাকে অনেক খোজাখোজি করার পরেও পাওয়া যায়নি। শুক্রবার সকালে খরের গাদার মধ্যে তার মৃতদেহ দেখতে পায় স্থানীয়রা।
সিরাজগঞ্জ সদর সার্কেল স্নিগ্ধ আক্তার জানান, শুক্রবার সকাল ৯ টার দিকে বাড়ীর পাসে তালতলা নামক স্থানে জমির মধ্যে খরের গাদার ভিতরে তার মৃতদেহ দেখতে পায় স্থানীয়রা।
খবর পেয়ে পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য সিরাজগঞ্জ শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছে। ময়নাতদন্তের পর মৃত্যুর কারণ জানা যাবে।

শেখ শাহজালাল হোসেন সুজনের মায়ের সুস্থতা কামনায় বিবৃতি

শেখ শাহজালাল হোসেন সুজনের মায়ের সুস্থতা কামনায় বিবৃতি


তুহিন রানা (আব্রাহাম) ; খুলনা নগর প্রতিনিধিঃ
খুলনা মহানগর ছাত্রলীগের এক বিবৃতি, প্রখ্যাত শ্রমিক নেতা, মজিদ মমেমোরিয়াল সিটি কলেজ ছাত্র সংসদের নির্বাচিত প্রথম ভিপি শেখ শহিদুল হকের সহধর্মিনী, খুলনা মহানগর যুবলীগের যুগ্ম-আহবায়ক ও খুলনা মহানগর ছাত্রলীগের সভাপতি শেখ শাহাজালাল হোসেন সুজনের মমতাময়ী মাতা বেগম রিজিয়া শহীদ অসুস্থ্য হয়ে খুলনা ফর্টিজ এসকর্ট কার্ডিয়াক হাসপাতালে ভর্তি আছেন৷

খুলনা মহানগর ছাত্রলীগের সকল নেতৃবৃন্দ তার সুস্থতা কামনায় আল্লাহ'র নিকট দোয়া ও প্রার্থনা কামনা করেন।

নড়াইলের চারণ কবি বিজয় সরকারের ৩৫ তম মৃত্যুবার্ষিকী

নড়াইলের  চারণ কবি বিজয় সরকারের ৩৫ তম মৃত্যুবার্ষিকী


মো:আজিজুর বিশ্বাস ষ্টাফ রিপোর্টার নড়াইলঃতুমি জানো নারে প্রিয়, তুমি মোর জীবনের সাধনা..
বাংলাদেশের একুশে পদকপ্রাপ্ত চারণ কবি বিজয় সরকারের ৩৫ তম মৃত্যুবার্ষিকী পালিত হয়েছে।

১৯৮৫ সালের ৪ ডিসেম্বর বার্ধক্যজনিত কারণে  ইন্তেকাল করেন এই চারণ কবি বিজয় সরকার। তার কবর ভারতের পশ্চিমবঙ্গে অবস্থিত হয়েছে। 

বিজয় সরকার ১৯০৩ সালের ২০ ফেব্রুয়ারি নড়াইল জেলা সদরের ডুমদি গ্রামে এক সনাতন পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন।তিনি ৯ম শ্রেণি মতান্তরে মেট্রিক পাশ ছিলেন। তিনি একাধারে গীতিকার, সরকার ও শিল্পী ছিলেন। তার লেখা লোক গান ছুঁয়ে যেত মানুষের হৃদয় তন্ত্রীতে। 

তিনি ১৮০০ এর বেশি গান রচনা করেছেন।

অসাম্প্রদায়িক চেতনার এই মানুষটির বিখ্যাত গান হলো, নবী নামের নৌকা গড়, এই পৃথিবী যেমন আছে / তেমনই ঠিক রবে, তুমি জানো নারে প্রিয় / তুমি মোর জীবনের সাধনা, জানিতে চাই দয়াল তোমার আসল নামটা কি, আল্লাহ নামের পাল খাটাও, বিসমিল্লাহ বলিয়া মোমিন, কূলের তরী খুলে দাও, এছাড়া 'পোষা পাখি উ'ড়ে যাবে সজনী, ওরে একদিন ভাবি নাই মনে, সে আমারে ভুলবে কেমনে… ইত্যাদি অারে গান।এই মহান ব্যাক্তি কে অাজ ও মনে রেখেছেন নড়াইল সর্বস্তরের মানুষ।

খুলনা মহানগর ও উপজেলা পর্যায়ে একযোগে মোবাইল কোর্টের অভিযান পরিচালনা

খুলনা মহানগর ও উপজেলা পর্যায়ে একযোগে মোবাইল কোর্টের অভিযান পরিচালনা


তুহিন রানা (আব্রাহাম) ; খুলনা নগর প্রতিনিধিঃ
আজ নগরীর বিভিন্ন পয়েন্টে ১৬টি ভ্রাম্যমান টিমের অভিযানে ২৫৯টি মামলায় ২৭১ জন দণ্ডিত ১১৮২০০ টাকা জরিমানা এবং ১৫৫ জন আটক।   

করোনা ভাইরাস সংক্রমণের সম্ভাব্য দ্বিতীয় ওয়েভ মোকাবেলায় জেলা প্রশাসক ও জেলা ম্যাজিস্ট্রেট, খুলনা জনাব মোহাম্মদ হেলাল হোসেন পিএএ মহোদয়ের নির্দেশে এবং অতিরিক্ত জেলা ম্যসজিস্ট্রেট, খুলনা জনাব মোঃ ইউসুপ আলী মহোদয়ের তত্ত্বাবধানে আজ ০৩ ডিসেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ তারিখে খুলনা মহানগরের আটটি মেট্রোপলিটন থানায় এবং খুলনা জেলার নয়টি উপজেলায় একযোগে মোবাইল কোর্টের অভিযান পরিচালিত হয়। ২৪ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে ১৬টি অভিযান টিমের মাধ্যমে মোবাইল কোর্টের অভিযান পরিচালিত হয়। 

বেলা ১০ ঘটিকা থেকে দুপুর ০১ ঘটিকা পর্যন্ত খুলনা মহানগর ও উপজেলাসমূহের বিভিন্ন স্থানে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে মাস্ক পরিধান না করা এবং যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি না মানার দায়ে মোট ২৫৯ টি মামলায় ২৭১ জনকে ১,১৮,২০০/- (এক লক্ষ আঠারো হাজার দুইশত) টাকা জরিমানা করা হয় এবং ১৫৫ জনকে আটক করা হয়। 'দণ্ডবিধি, ১৮৬০' এর ২৬৯ ধারা এবং 'সংক্রামক রোগ (প্রতিরোধ, নিয়ন্ত্রণ ও নির্মূল) আইন, ২০১৮' এর সংশ্লিষ্ট ধারার বিধান মোতাবেক এসব জরিমানা করা হয়। 

উল্লেখ্য, সম্প্রতি করোনাভাইরাস সংক্রমণের হার বেড়ে যাওয়ায় গত ০৮ নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ তারিখের জেলা আইন-শৃঙ্খলা কমিটির সভার সর্বসম্মত সিদ্ধান্তের প্রেক্ষিতে ০৯ নভেম্বর, ২০২০ তারিখ থেকে জেলা প্রশাসন কঠোর অবস্থা গ্রহণ করে। ০৯ নভেম্বর, ২০২০ তারিখ থেকে অদ্যাবধি পরিচালিত মোবাইল কোর্টে মোট ৭৭০টি মামলায় ৩,৮৮,৮৭০/- টাকা জরমানা করা হয়েছে এবং ৩৮২ জনকে আটক করা হয়।
মোবাইল কোর্ট পরিচালনায় সহযোগিতা প্রদান করেন মহানগরস্থ মেট্রোপলিটন থানা পুলিশ, এপিবিএন ও ব্যাটালিয়ন আনসারের সদস্যগণ এবং উপজেলাসমূহে স্ব-স্ব থানা পুলিশের সদস্যগণ। করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় ওয়েভ মোকাবেলায় এবং স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিতকরণে জেলা প্রশাসনের এমন উদ্যোগ অব্যাহত থাকবে।

ইউনিয়ন বাসীর দাবীতে সাংবাদিক বাশার হলেন চেয়ারম্যান প্রার্থী

ইউনিয়ন বাসীর দাবীতে সাংবাদিক বাশার হলেন চেয়ারম্যান প্রার্থী

আব্দুল জব্বার, স্টাফ রিপোর্টার।। যশোরের মনিরামপুর উপজেলার ৯নং ঝাঁপা ইউনিয়ন বাসীর একমাত্র চাওয়া পাওয়া ও দাবীর মুখে হাঁসি ফোটাতে, অবশেষে আসন্ন ইউপি নির্বাচনে সাংবাদিক আবুল বাশার নিজেই চেয়ারম্যান প্রার্থী ঘোষণা করলেন। জানা যায় মণিরামপুর উপজেলার পশ্চিমাঞ্চল তথা  রাজগঞ্জ অঞ্চল, আওয়ামী লীগের প্রধান পৃষ্ঠপোষক ও অধিক জনপ্রিয় নেতা, চাকলাদার সাংবাদিক আবুল বাশার। 

তিনি গত নাশকতার সময়, কঠিন ভুমিকায় রাজগঞ্জকে শান্তমুক্ত রেখেছিলেন। এ এলাকায় বিএনপি জামায়াতের কোন আধিপত্ব বিস্তার করতে দেয়নি। তবে কিছুদিন পুর্বে তার শাররিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় ঢাকাসহ বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকায়, স্থানীয়ভাবে দলীয় নেতৃত্বের অনেকটা দুরে ছিলেন তিনি। সুস্থ হয়ে ফিরে এসে আবারও এলাকার রাজনীতি চাঙ্গা করে। 

দেখা গেছে আ,লীগের দু:দীনে নিজ ব‍্যবসা প্রতিষ্ঠানকে দলীয় অফিস হিসাবে ব‍্যবহার করতে। উপরের নেতা থেকে শুরু করে স্থানীয় নেতারা সেখানে উঠাবসা করছে। দলীয় প্রগ্রাম সফল করতে সেখানে বসে পরিকল্পনা করতো স্থানীয় নেতারা। ফলে সকল কাজের মাথায় থেকে সুষ্ঠভাবে সকল দলীয় প্রগ্রাম  সফল করতেন তিনি। যার কারনে ধারনা করা হচ্ছে এ ইউনিয়ন থেকে দলীয় ভাবে মনোনয়ন সেই পেতে পারে।  


তিনি আশাবাদী কর্ম দক্ষতা ও দলীয় কাজের হিসাব নিকাশে উপরের নেতাদের সব থেকে কাছের ব‍্যক্তি হলেন তিনি। তাই নেতারা তাকেই দলীয় মনোনয়ন দিবেন বলে তিনি শতভাগ আশাবাদী। দলীয় মনোনয়ন পেয়ে ৯নং ঝাঁপা ইউনিয়নে চেয়ারম্যান প্রার্থী হয়ে মাঠে নামলেই চেয়ারম‍্যান নির্বাচিত হবেন। 


উল্লেখ‍্য চেয়ারম্যান প্রার্থী  আবুল বাশার  ইতিপূর্বে দলীয়ভাবে সমর্থন পেয়ে, নির্বাচন করে রাজগঞ্জ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির বারবার সভাপতি হয়েছিলেন । সভাপতি থাকাকালীন বিদ্যালয়ের লেখাপড়ার মান খুবই উন্নত করেছিলেন। এছাড়া  তিনি রাজগঞ্জ বাজার কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে থেকে, দীর্ঘ ৩৭ বছর ধরে দক্ষতার সততা ও নিষ্ঠার সাথে বাজার পরিচালনা করে এসেছেন। তিনি বাজারের মেইন পয়েন্টের  একজন বিশিষ্ট নামকারী ব্যাবসায়ী। 


এই প্রার্থীর বিষয়ে সাধারন মানুষের সাথে কথা বলে জানা যায়, তারা ঝাঁপা ইউনিয়নে আবুল বাশারকে চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসাবে দেখতে চাই। এটাই তাদের একমাত্র চাওয়া পাওয়া। আর  জনগণের সেই চাওয়ার প্রত্যাশা পূরণ করতে অবশেষে তিনি চেয়ারম্যান প্রার্থী হওয়ার ঘোষনা দিলেন আবুল বাশার। এদিকে আবুল বাশার চেয়ারম‍্যান প্রার্থী এমন সংবাদে ইউনিয়নের অনেকেই আনন্দ উৎফুল্ল করছে। এদিকে চেয়ারম্যান প্রার্থীর ঘনিষ্ঠদের মাধ‍্যমে প্রার্থী হওয়ার সংবাদ পেয়ে সন্তষ্টি প্রকাশ করেছেন ইউনিয়নের গরীব অসহায় ও সাধারণ ভোটাররা। 


অনেকেই প্রার্থী আবুল বাসারের মুঠো ফোনে শুভেচ্ছা জানিয়ে পাশে থাকবেন বলে জানিয়েছে। চেয়ারম্যান প্রার্থী আবুল বাশারের নিকট জানতে চাইলে তিনি জানান, সাধারণ জনগনের দাবীটা পুরন করতে আমি চেষ্টা করছি। সে কারণে আমি চেয়ারম্যান প্রার্থী হওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। পাশাপাশি আমার রাজনৈতিক দল আওয়ামী লীগ আমাকে মনোনয়ন দিয়ে নৌকা প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করার সুযোগ করে দিবে। তাহলে ইউনিয়ন বাসীর চাওয়াটা পুরন হবে বলে আমি মনে করছি।

কুলাউড়া ব্যবসায়ী কল্যাণ সমিতির বিরুদ্ধে আদালতের স্থিতাবস্থা

কুলাউড়া ব্যবসায়ী কল্যাণ সমিতির বিরুদ্ধে আদালতের স্থিতাবস্থা

কুলাউড়া প্রতিনিধিঃকুলাউড়া শহরের বৃহৎ সংগঠন ব্যবসায়ী কল্যাণ সমিতির নির্বাচন নিয়ে সমন জারীর একদিন পর দায়িত্বগ্রহণসহ যাবতীয় কার্যক্রমে স্থিতাবস্থা বজায় রাখার নির্দেশ দিয়েছেন সিনিয়র সহকারী জজ আদালত।২৯ নভেম্বর ব্যবসায়ী কল্যাণ সমিতির নির্বাচন পরিচালনা কমিটির আহ্বায়ক খন্দকার লুৎফুর রহমানসহ কমিটির বাকি ৬ সদস্যদের বিরুদ্ধে সমনজারি করেন আদালত।

এদিকে  ০১ ডিসেম্বর জহির খাঁন ডলারের ২৯ নভেম্বরের মামলা (নং ৯১/২০২০) কার্য্যবিধি আইনের ৩৯ নং আদেশের ১ নং রুলের প্রেক্ষিতে কারণ দর্শানোর সমন প্রাপ্ত হওয়ায় ক্রুটিপূর্ণ ভোটার তালিকা মূলে অস্থায়ী নির্বাচিত কার্যকরী কমিটিকে শপথ করিতে না পারেন এবং শপথের মাধ্যমে দায়িত্ব হস্তান্তর করতে না পারেন  এব্যাপারে অন্তবর্তীকালীন নিষেধাজ্ঞার আবেদন করলে  কুলাউড়া ব্যবসায়ী কল্যাণ সমিতির নির্বাচিত কমিটির দায়িত্বগ্রহণসহ যাবতীয় কার্যক্রম পরবর্তী তারিখ অর্থাৎ ১৭ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত স্থিতাবস্থা বজায় রাখার নির্দেশ দিয়েছেন সিনিয়র সহকারী জজ আদালত।

এ ব্যাপারে কুলাউড়া ব্যবসায়ী কল্যাণ সমিতির নির্বাচন পরিচালনা কমিটির আহ্বায়ক খন্দকার লুৎফুর রহমান জানান, সমন ও স্থিতাবস্থার পৃথক নোটিশ প্রাপ্তির কথা স্বীকার করেন। আইনী প্রক্রিয়ায় আদালতের নোটিশের জবাব দেবেন বলে জানান।