নড়াইলে এক ভূয়া ক্যাপ্টেন পরিচয় কারী কে গ্রেফতার করেছে পুলিশ

নড়াইলে এক ভূয়া ক্যাপ্টেন পরিচয় কারী কে গ্রেফতার করেছে পুলিশ

মো: আজিজুর বিশ্বাস ষ্টাফ রিপোর্টার নড়াইল।।নড়াইলের লোহাগড়ায় বাংলাদেশ নৌবাহিনীর ক্যাপ্টেন পরিচয় দিয়ে লোহাগড়া সরকারী পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের স্কাউট শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে বৃত্তি দেয়ার নাম করে টাকা নেওয়ার অভিযোগে এক ভূয়া ক্যাপ্টেনকে গ্রেফতার করেছে লোহাগড়া থানা পুলিশ।

 গ্রেফতারকৃত ভূয়া ক্যাপ্টেন হাসিবুল ইসলাম হৃদয়(২৯) নড়াইলের কালিয়া উপজেলার পুরুলিয়া ইউনিয়নের রঘুনাথপুর গ্রামের ইউনুস শেখের ছেলে।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে,  ভূয়া ক্যাপ্টেন হাসিবুল ইসলাম হৃদয় গত কয়েকদিন ধরে লোহাগড়া সরকারী পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হায়াতুজ্জামানের কাছে বাংলাদেশ নৌবাহিনীর ক্যাপ্টেন পরিচয় দিয়ে ঐ বিদ্যালয়ের স্কাউট শিক্ষার্থীদের বিএনসিসি'র বৃত্তি দেবে বলে জানায়। 

সে গত বুধবার ( ২ ডিসেম্বর) বিদ্যালয়ে আসলে শিক্ষক ও স্কাউট শিক্ষার্থীরা তাকে  যথারীতি গার্ড অব অনার প্রদান করেন। 

সোমবার সকালে ওই ভূয়া ক্যাপ্টেন বিদ্যালয়ে এসে শিক্ষার্থীদের কাছে বৃত্তির টাকা, পোষাক সহ বিভিন্ন সুযোগ সুবিধার কথা বলে কিছু টাকা দাবি করে। বিষয়টি প্রধান শিক্ষকসহ শিক্ষার্থীদের সন্দেহ হলে তারা স্থানীয় লোহাগড়া থানা পুলিশ প্রশাসনকে অবহিত করলে লোহাগড়া থানার এসআই কামরুজ্জামানের নেতৃত্বে একদল পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে তাকে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে আসে। 

লোহাগড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সৈয়দ আশিকুর রহমান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, এ ঘটনায় থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

আশাশুনি বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভাংচুরের প্রতিবাদে মুক্তিযোদ্ধাদের মানববন্ধন অনুষ্ঠিত

আশাশুনি বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভাংচুরের প্রতিবাদে মুক্তিযোদ্ধাদের মানববন্ধন অনুষ্ঠিত
আহসান উল্লাহ বাবলু,আশাশুনি,  সাতক্ষীরা   প্রতিনিধিঃআশাশুনিতে বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভাংচুরের প্রতিবাদে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স ভবনের সামনের সড়কে আশাশুনি মুক্তিযোদ্ধাদের আয়োজনে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার আব্দুল হান্নানের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন উপজেলা সন্তান কমান্ডের আহবায়ক, সাবেক চেয়ারম্যান স,ম সেলিম রেজা সেলিম, বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল করিম, আকবর মাষ্টার, নূরুল হুদা, শহীদ মোল্যা সহ বীর মুক্তিযোদ্ধাবৃন্দ। মানববন্ধনে মুক্তিযোদ্ধারা বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভাংচুরের নিন্দা জানান এবং দোষীদের গ্রেফতারপূর্বক দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী জানান। 

জমি জবর দখলের চেষ্টায়প্রতিপক্ষের হামলা, ভাংচুর, মারপিটে স্বামী স্ত্রী আহত

জমি জবর দখলের চেষ্টায়প্রতিপক্ষের হামলা, ভাংচুর, মারপিটে স্বামী স্ত্রী আহত

আহসান উল্লাহ সাতক্ষীরা জেলা প্রতিনিধিঃ আশাশুনিতে এক ভূমিহীনের ডিসিআরকৃত জমি জবর দখলের চেষ্টায় বঁাধা দেওয়ায় প্রতিপক্ষের হামলা, ভাংচুর, মারপিটে স্বামী স্ত্রী আহত হয়েছে। গুরুতর আহ দের মধ্যে স্বামী মজিদ সরদারের অবস্থা আশংকাজনক। ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল সকাল  ১১টায় আশাশুনি উপজেলার শ্রীউলা ইউনিয়নে কলিমাখালী গ্রামে। থানায় লিখিত এজাহারে জানগেছে  কলিমাখালী গ্রামের মৃত আনছার সরদারের পুত্র ভূমিহীন আব্দুল মজিদ সরদার কলিমাখালী মৌজায় নদীর চরভরাটে ৫০ শতক খাসজমি ডিসিআর নিয়ে ঘরবাড়ী নির্মান করে দীর্ঘ দিন শান্তিপূর্ণভাবে বসবাস করে আসছিল। কিন্ত উক্ত জমি জবর দখল নেওয়ার জন্য একই গ্রামের পরসম্পদ লোভী ভূমিদুস্য এলাকার ত্রাস মৃত আবুল কাশেস সরদারের পুত্র মোতালেব হোসেন তার দলবল নিয়ে গভীর ষড়যন্ত্র ও চক্রান্ত করে। ষড়যন্ত্র মোতাবেক উক্ত জমি ছেড়ে দিতে অসহায় ভূমিহীন পরিবারকে খুন জখমের হুমকি দিয়ে আসছিল। এতে কাজ না হওয়ায় ঘটনার দিন সকালে ভূমিদুস্য মোতালেব হোসেনের নেতৃত্বে তার দলবল মৃত ফজর আলী সরদারের পুত্র আমিরুল ইসলাম, মৃত কাশেম সরদারের পুত্র মনিরুল ইসলাম ও স্ত্রী তাছলিমা খাতুনসহ অজ্ঞাতনামা ২ ও ৩জন ধারালো অস্ত্র শস্ত্রে সজ্জিত হয়ে উক্ত ডিসিআরকৃত সম্পত্তিতে অবৈধভাবে প্রবেশ করে জবর দখল নেওয়ার চেষ্টা করে। এতে বঁাধা দেওয়ায় ক্ষিপ্ত হয়ে তারা বলে তোদের আজকে জীবনে শেষ করে দিব বলে অসহায় ভূমিহীন মজিদ সরদারকে এলোপাতাড়ীভাবে পিটাতে থাকলে  তার স্ত্রী সুমনা ঠেকাতে আসলে তাকে জাপটে ধরে কাপড় চোপড় ছিড়ে ছুটে শ্লীলতাহানী করাসহ বেপোরোয়া মারপিট করে গুরুতর আহত করে। আহতরা অজ্ঞান অবস্থায় মাটিতে পড়ে থাকে। এমতাবস্থায় পরবর্তিতে তারা বসত বাড়ীতে হামলা চালিয়ে ব্যাপক ভাংচুর করে ২০হাজার টাকার মত ক্ষয়ক্ষতি করে। তাছাড়া আহত স্ত্রী সুমনা ইয়াসমিনের গলায় থাকা ৮আনা ওজনের ৩৫হাজার টাকা মূল্যের স্বর্নের চেইন ছিনিয়ে নেয়। আশপাশের লোকজন টের পেয়ে আহত স্বামী স্ত্রীকে উদ্ধার করে আশাংকাজনক অবস্থায় স্বামী মজিদকে আশাশুনি হাসপাতালে ভর্তি করে ও তার স্ত্রী সুমনা ইয়াসমিনকে স্থানীয় ডাক্তার দ্বারা চিকিৎসা করে। এ ব্যাপারে আশাশুনি থানায় লিখিত এজাহার দায়ের করেছে। এ ব্যাপারে থানা অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ গোলাম কবিরের সাথে কথা হলে তিনি এ প্রতিবেদকে জানান ভূমিহীন পরিবারের লিখিত এজাহার পেয়েছি ঘটনার তদন্ত পূর্বক আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। হামলাকারীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণপূর্বক অবিলম্বে গ্রেফতারের দাবী জানিয়েছেন উপজেলা ভূমিহীন সমিতি ও এলাকাবাসী। 

খুলনায় করোনা স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিতকরনে মোবাইল কোর্টের অভিযান অব্যহত

খুলনায় করোনা স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিতকরনে মোবাইল কোর্টের অভিযান অব্যহত

তুহিন রানা (আব্রাহাম) ; খুলনা নগর প্রতিনিধিঃ আজ নগরীর খালিশপুরে ৩৩ মামলায় ৩৫ জনকে ১৫১০০ টাকা অর্থদণ্ড করা হয়।
করোনাভাইরাস সংক্রমণের সম্ভাব্য দ্বিতীয় ওয়েভ মোকাবেলার প্রস্তুতি হিসেবে অদ্য ০৭ ডিসেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ তারিখে সুযোগ্য জেলা প্রশাসক ও বিজ্ঞ জেলা ম্যাজিস্ট্রেট, খুলনা জনাব মোহাম্মদ হেলাল হোসেন পিএএ মহোদয়ের নির্দেশে নগরীর খালিশপুর এলাকায় মোবাইল কোর্টের অভিযান পরিচালিত হয়। মোবাইল কোর্টের অভিযান পরিচালনা করেন জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জনাব জনাব দেবাশীষ বসাক এবং জনাব তাহমিনা সুলতানা নীলা। উপজেলাসমূহে স্ব-স্ব উপজেলা নির্বাহী অফিসার এবং সহকারী কমিশনার (ভূমি)-গণ মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করেন। 

মোবাইল কোর্ট পরিচালনাকালে মাস্ক সাথে না থাকায় এবং যথাযথভাবে মাস্ক পরিধান না করায় নগরীতে ১১টি মামলায় ১১ (এগারো) জনকে মোট ৯,২০০/- (নয় হাজার দুইশত) টাকা অর্থদণ্ড প্রদান করা হয়। এবং উপজেলায় মোট ২২টি মামলায় ২৪ (চব্বিশ) জনকে মোট ৫,৯০০/- (পাঁচ হাজার নয়শত) টাকা জরিমানা করা হয়। 'সংক্রামক রোগ (প্রতিরোধ, নিয়ন্ত্রণ ও নির্মূল) আইন, ২০১৮' এবং 'দণ্ডবিধি, ১৮৬০' এর সংশ্লিষ্ট ধারার বিধান মোতাবেক এসব জরিমানা করা হয়। 

সম্প্রতি করোনাভাইরাস সংক্রমণের হার বেড়ে যাওয়ায় গত ০৮ নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ তারিখের জেলা আইন-শৃঙ্খলা কমিটির সভার সর্বসম্মত সিদ্ধান্তের প্রেক্ষিতে ০৯ নভেম্বর, ২০২০ তারিখ থেকে জেলা প্রশাসন কঠোর অবস্থা গ্রহণ করে।মোবাইল কোর্ট পরিচালনায় সহযোগিতা করেন এপিবিএন এর সদস্যগণ এবং উপজেলা সমূহে স্ব-স্ব থানা পুলিশের সদস্যগণ। স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিতকরণে এবং মাদক সংক্রান্ত অপরাধ নির্মূলে জেলা প্রশাসনের এমন অভিযান অব্যাহত থাকবে।

আশাশুনিতে ভ্রাম্যমাণ আদালতে জরিমানা

আশাশুনিতে ভ্রাম্যমাণ আদালতে জরিমানা

আহসান উল্লাহ বাবলু আশাশুনি  সাতক্ষীরা  প্রতিনিধি: আশাশুনিতে সরকারী জায়গা থেকে অবৈধভাবে মাটি কাটায় ও মাস্ক পরিধান না করায় ভ্রাম্যমান আদালতে ৫ হাজার ৩৫০ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। সোমবার দুপুরে সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট শাহীন সুলতানা এ ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন। ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনাকালে শোভনালী ইউনিয়নের বাঁকড়া গ্রামের আলহাজ্ব জিয়াদ আলীর ছেলে আব্দুর রউফকে সরকারি জায়গা থেকে অবৈধভাবে মাটি কাটার অপরাধে পরিবেশ সংরক্ষণ আইনে ৫ হাজার টাকা এবং মাক্স পরিধান না করায় আশাশুনি সদর ইউনিয়নের ব্রীজ সংলগ্ন এলাকা থেকে সদর উপজেলার হাবাসপুর গ্রামের মৃত মইনউদ্দীন সরদারের ছেলে মহিদুল ইসলাম ও সাতক্ষীরা সদরের মোজাফফর আলীর ছেলে আসাদুল ইসলামকে সর্বমোট ৩৫০ টাকা জরিমানা করা হয়। এসময় অফিস সহকারি মোস্তাফিজুর রহমান ও আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

আশাশুনি মুক্ত দিবস উদযাপন উপলক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত

আশাশুনি মুক্ত দিবস উদযাপন উপলক্ষে  আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত

আহসান উল্লাহ বাবলু আশাশুনি সাতক্ষীরা  প্রতিনিধি: ৭ ডিসেম্বর আশাশুনি মুক্ত দিবস উদযাপন উপলক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। রবিবার বেলা সাড়ে ১১টায় উপজেলা পরিষদ সম্মেলন কক্ষে এ আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা প্রশাসন ও উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডের আয়োজনে আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মীর আলিফ রেজা। সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আব্দুল হান্নানের সঞ্চালনায় এসময় উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান অসীম বরণ চক্রবর্তী, সাবেক চেয়ারম্যান রুহুল কুদ্দুস মোল্যা, সাবেক ডেপুটি কমান্ডার নাজিমউদ্দীন, গাওছুল হক সানা, আব্দুল করিম, আশাশুনি প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি আহসান হাবীবসহ বীরমুক্তিযোদ্ধাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। এর আগে কুষ্টিয়ায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্য অবমাননা ও ভাংচুরের প্রতিবাদে উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্সের সামনে বীরমুক্তিযোদ্ধাদের অংশগ্রহনে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল মিছিল অনুষ্ঠিত হয়।

চট্টগ্রাম বন্দর বিভাগে অক্টোবর মাসের অপরাধ সভা

চট্টগ্রাম বন্দর বিভাগে  অক্টোবর মাসের অপরাধ সভা
চট্টগ্রাম বন্দর বিভাগে  অক্টোবর মাসের অপরাধ সভা
হাসান রিফাত, চট্টগ্রাম প্রতিনিধিঃ ০৭/১২/২০২০ ইং তারিখে বন্দর বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার মোঃ মিলন মাহমুদ, (বিপিএম-বার) মহোদয়ের সভাপত্বিতে অক্টোবর মাসের অপরাধ সভা অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত অপরাধ সভায় উপস্থিত ছিলেন্ অতিঃরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (বন্দর) অলক বিশ্বাস,  কর্ণফুলী জোনের সহকারী পুলিশ কমিশনার মোঃ ইয়াসিন আরাফাত এবং বন্দর জোনের সকল থানার অফিসার ইনর্চাজ ও পুলিশ পরিদর্শক তদন্ত সহ সকল ফাড়িঁর ইনর্চাজবৃন্দ। উক্ত আলোচনা সভায় সকল থানা ও ফাড়িঁ মাসিক পারফরম্যান্স ও আইন শৃঙ্খলা রক্ষার বিষয় নিয়ে আলোচনা করা হয়। এ সময় উপ-পুলিশ কমিশনার (বন্দর) মহোদয় সকল থানা ও ফাড়িঁ অফিসার ইনর্চাজদের উদ্দেশ্যে বিভিন্ন দিক নির্দেশনামূলক বক্তব্য প্রদান করেন।

কিশোরগঞ্জে লক্ষিত সুফল ভোগীদের মাঝে গরু বিতরণ

কিশোরগঞ্জে লক্ষিত সুফল ভোগীদের মাঝে গরু বিতরণ
কিশোরগঞ্জে লক্ষিত সুফল ভোগীদের মাঝে গরু বিতরণ
মোঃ লাতিফুল আজম,নীলফামারী প্রতিনিধিঃ নীলফামারীর কিশোরগঞ্জে ইন্টিগ্রেটেড লাইভলিহুড  টেকনিক্যাল প্রোগ্রাম এপি ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশ কর্তৃক আয়োজিত উপজেলার পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীর জীবনমান উন্নয়নের লক্ষ্যে প্রতি বছরের ন্যায় এবারো তাদের কর্ম এলাকার ৫টি ইউনিয়নের ২২৫টি হতদরিদ্র শিশু পরিবারের মাঝে সপ্তাহব্যাপী ৬০ লাখ ৭৫ হাজার টাকার বকনা গরু বিতরণের শুভ উদ্বোধন করা হয়। সোমবার সকালে  উপজেলা পরিষদ চত্বরে আয়োজিত  সংস্থাটির এরিয়া প্রোগ্রাম ম্যানেজার পিকিং চাম্বুগং এর সভাপতিত্বে, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোছাঃ রোকসানা বেগমের প্রধান অতিথির  উপস্থিতিতে প্রথম পর্যায়ে ৫০টি  হতদরিদ্র পরিবারের  মাঝে বকনা গরু বিতরণ করা হয়। এময় আরও উপস্থিত ছিলেন,উপজেলা প্রাণিসম্পদ অফিসার মাহফুজুর রহমান,নীলফামারী এপিসির ক্লাস্টার ম্যানেজার স্বপন মন্ডল,ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশ এর প্রোগ্রাম অফিসার আমজাদ হোসেন,মিন্টু বিশ্বাস, শ্যামল মন্ডল, সানজিদা আনছারী,চাদঁখানা ইউপি চেয়ারম্যান হাফিজার রহমান হাপি,এমপি প্রতিনিধি রেজাউল আলম স্বপন প্রমুখ।

পটিয়ায় মৃত্যুর দাবি চেক হস্তান্তর

পটিয়ায় মৃত্যুর দাবি চেক হস্তান্তর
পটিয়ায় মৃত্যুর দাবি চেক হস্তান্তর
সেলিম  চৌধুরী  স্টাফ  রিপোর্টারঃ পটিয়া পপুলার লাইফ ইনসুরেন্সের কোঃ লিঃ  সার্কুলার রোড় কার্যলয়ে  ৭ ডিসেম্বর সোমবার  দুপুরে মোঃ বাদশা মিয়া মৃত্যুর দাবি চেক হস্তান্তর করেন  পপলুার লাইফ ইনসুরেন্সের কোঃ লিঃ পটিয়া সাংগঠনিক অফিস ইনচার্জ নজরুল ইসলাম। মৃত্যুর দাবি বাদশার মিয়ার স্ত্রী নমনী  ফিরোজা বেগম এর পক্ষে তার   ছেলে ৫৬ হাজার টাকার চেক গ্রহণ করেন। এসময়  উপস্থিত ছিলেন সাংবাদিক হারুনর রশীদ সিদ্দিকী, যুবনেতা  ইদ্রিস পানু, পটিয়া পপুলার লাইফ ইনসুরেন্স  অফিসের জিএম নুর মোহাম্মদ, ডিজিএম  রাখাল চন্দ্র বড়ুয়া, বিএম নয়ন দে প্রমুখ। 

জেলা ডিবি পুলিশের অভিযানে মাদকদ্রব্য সহ গ্রেফতার -২

জেলা ডিবি পুলিশের অভিযানে মাদকদ্রব্য সহ গ্রেফতার -২


তুহিন রানা (আব্রাহাম) ; খুলনা নগর প্রতিনিধিঃ গত ০৫/১২/২০১৯ খুলনা জেলা ডিবি পুলিশের বিশেষ অভিযানে ফুলতলা থানা এলাকা হতে ২০ (বিশ) বোতল মাদকদ্রব্য ফেন্সিডিল, ১০ (দশ) পিচ ইয়াবা ট্যাবলেট এবং ১০০ (একশত) গ্রাম মাদকদ্রব্য গাঁজাসহ ০২ (দুই) জন গ্রেফতার।

গত ৫ ই ডিসেম্বর খুলনা জেলা গোয়েন্দা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ জনাব সেখ কনি মিয়া এর নেতৃত্বে জেলা গোয়েন্দা শাখা, খুলনার নেতৃত্বে এসআই (নিঃ)/ রাজিউল আমিন সংগীয় অফিসার ও ফোর্সসহ ফুলতলা থানা এলাকায় মাদক উদ্ধার সহ বিবিধ উদ্ধার অভিযান পরিচালনা কালে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ফুলতলা থানাধীন ফুলতলা সরকারি মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের  বিপরীত পার্শ্বে আলকা সাকিনস্থ জনৈক সিরাজ এর চায়ের দোকানের সামনে পাঁকা রাস্তার উপর থেকে আসামি ১। পার্থ কুন্ডু (২৩), পিতা- মৃত গৌর কুন্ডু, মাতা- সনেকা কুন্ডু, সাং- তাজপুর, থানা- ফুলতলা, জেলা- খুলনাকে ধৃত পূর্বক তার হেফাজত হতে ক) ০১ (এক) টি সাদা স্বচ্ছ পলিপ্যাকে মোড়ানো ১০(দশ) পিচ গোলাপী রংয়ের কথিত মাদকদ্রব্য ইয়াবা ট্যাবলেট এবং ০১ (এক) টি সবুজ পলিথিনের ভিতর বাশপাতা কাগজে মোড়ানো ১০০(একশত) গ্রাম গাঁজা উদ্ধার পূর্বক ০৫/১২/২০২০ খ্রিঃ তারিখ রাত ১১:২৫ ঘটিকার সময় জব্দতালিকা মূলে  জব্দ করেন এবং এসআই (নিঃ)/ ইন্দ্রজিৎ মল্লিক সঙ্গীয় অফিসার ও ফোর্স সহ ফুলতলা থানা এলাকায় মাদক উদ্ধার ও বিশেষ অভিযান পরিচালনা কালে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ফুলতলা থানাধীন আলকা গ্রামস্থ চৌদ্দমাইল মোড়ে জনৈক হাসান মোড়লের মার্কেটের পূর্ব পার্শ্বে পাঁকা রাস্তার উপর থেকে আসামি ১। মোঃ বোরহান শেখ(২৮), পিতা- মোঃ মহিউদ্দিন শেখ, সাং- পয়গ্রাম, থানা- ফুলতলা, জেলা- খুলনাকে ধৃত পূর্বক তার হেফাজত হতে ১। একটি প্লাস্টিকের তৈরি সাদা রংয়ের বাজার করা ব্যাগের মধ্যে ২০ (বিশ) বোতল ভারতীয় তৈরী কথিত মাদকদ্রব্য ফেন্সিডিল উদ্ধার পূর্বক ০৫/১২/২০২০ তারিখ রাত্র ১১:৪৫ ঘটিকার সময় জব্দতালিকা মূলে জব্দ করেন ।

এই পৃথক ঘটনায় উপরোক্ত ব্যক্তিদ্বয়ের বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য আইনে মামলা দায়ের করেন।

আদমজী ৮৯ ব্যাচের সহায়তায় কয়রায় সেলাই মেশিন বিতরণ

আদমজী ৮৯ ব্যাচের সহায়তায় কয়রায় সেলাই মেশিন বিতরণ

মোহাঃ ফরহাদ হোসেন কয়রা ((খুলনা)) প্রতিনিধিঃ আদমজী ক্যান্টনমেন্ট কলেজ, ঢাকা'র ১৯৮৯ সালের এইচএসসি ব্যাচের শিক্ষার্থীদের সহায়তায় উপকূলবর্তী এলাকা কয়রা উপজেলায় দুস্থদের মাঝে সেলাই মেশিন  বিতরণ করা হয়েছে। 
সোমবার বেলা ১১ টায় কয়রা কপোতাক্ষ মহাবিদ্যালয়ের অডিটোরিয়ামে আয়োজিত  সেলাই মেশিন বিতরণ প্রোগ্রামে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কয়রা উপজেলা নির্বাহী অফিসার জনাব  অনিমেষ বিশ্বাস, 
বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কয়রা সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এইচ.এম হুমায়ুন কবির , কয়রা কপোতাক্ষ মহাবিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ জনাব অদ্রীশ আদিত্য  মন্ডল, কয়রা উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা জনাব সাগর হোসেন সৈকত,  কপোতাক্ষ মহাবিদ্যালয়ের প্রভাষক জনাব  বিদেশ রঞ্জন মৃধা, আইসিডি'র উপদেষ্টা মোস্তাফিজুর রহমান,  আইসিডি'র প্রতিষ্ঠাতা জনাব আশিকুজ্জামান। 

প্রধান অতিথির বক্তব্যে কয়রা উপজেলা নির্বাহী অফিসার  জনাব অনিমেষ বিশ্বাস বলেন,  আইসিডি'র এই অনন্য উদ্যোগ কয়রা উপজেলায় টেকসই কর্মসংস্থান সৃষ্টিতে ব্যাপক ভূমিকা রাখবে৷ আদমজী ৮৯ ব্যাচের সকল শিক্ষার্থীকে ধন্যবাদ জানাই তাঁরা উপকূল এলাকা কয়রায় উন্নয়ন কর্মকান্ড অব্যাহত রেখেছে৷ 

অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন আইসিডির সদস্য, মুজাহিদুল ইসলাম,   আশিকুজ্জামান, ফরহাদ হোসেন, আমিরুল, মিরাজ, আব্দুল্লাহ, বাদশা, আহসান, নুরুল্লাহ, বাদশা, গোবিন্দ মুন্ডা, শফিউল্লাহ,পলাশ প্রমুখ।

কৃষকের নামে বরাদ্দ নিয়ে ২০ বস্তা গম বীজ বিক্রির চেষ্টা

 কৃষকের নামে বরাদ্দ নিয়ে ২০ বস্তা গম বীজ বিক্রির চেষ্টা


কুড়িগ্রাম প্রতিনিধিঃ কু‌ড়িগ্রা‌মের রৌমারী উপ‌জেলায় বন‌্যায় ক্ষ‌তিগ্রস্ত কৃষক‌দের জন‌্য বরাদ্দকৃত সরকা‌রি প্রণোদনার ২০ বস্তা (৪০০ কে‌জি) গম বীজ আটক ক‌রেছে স্থানীয়রা। উপ‌জেলা কৃ‌ষি অ‌ফি‌সের গুদাম থে‌কে ভ‌্যানে ক‌রে বীজ নি‌য়ে যাওয়ার সময় স্থানীয়রা এসব বীজ আটক করা হয়। র‌বিবার (‌৬ ডি‌সেম্বর) বিকা‌লে এ ঘটনা ঘ‌টে। রৌমারী উপ‌জেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আল ইমরান এ তথ‌্য জানিয়েছেন।

বীজ আটককারী‌দের একজন শেখ শা‌হীন আলম জানান, র‌বিবার বিকাল ৪টার দি‌কে উপ‌জেলা কৃ‌ষি অফিসের স্টোর থে‌কে ভ‌্যা‌নে ক‌রে ২০ বস্তা গম বীজ


নি‌য়ে যাওয়ার সময় তি‌নি ভ‌্যান‌টি আটক ক‌রেন। ভ্যানের সঙ্গে কোনও কৃষক ছিল না। ভ্যানচালক আব্দুল খা‌লেক জানান, যে এসব বীজ উপ-সহকারী কৃ‌ষি কর্মকর্তা জিয়াউর রহমা‌নের। প‌রে ভ‌্যান চাল‌কের ফোন পে‌য়ে জিয়াউর রহমান ঘটনাস্থ‌লে আসেন।

তিনি ব‌লেন, ‘জিয়াউর এসে আমা‌কে পাঁচ হাজার টাকার বি‌নিম‌য়ে ভ‌্যান ছে‌ড়ে দেওয়ার প্রস্তাব দি‌লে আমি তা প্রত‌্যাখ‌্যান ক‌রি এবং ইউএনও স‌্যার‌কে ফো‌নে বিষয়‌টি অব‌হিত ক‌রি। প‌রে ইউএনও স‌্যা‌রের নি‌র্দেশে উপ‌জেলা কৃ‌ষি কর্মকর্তা এসে বীজগু‌লো জব্দ ক‌রে নিয়ে যান।’

তি‌নি আরও ব‌লেন, উপ-সহকারী কৃ‌ষি কর্মকর্তা জিয়াউ‌র অনিয়‌মের মাধ‌্যমে কৃষকদের জন‌্য বরাদ্দকৃত এসব বীজ স্টোর থে‌কে বের ক‌রে তার ভাই‌ র‌বিউল ইসলাম বাবুর দোকানে নি‌য়ে যা‌চ্ছিল। সে তার ব্ল‌কের (চু‌লিয়ারপার ব্লক) কৃষক‌দের না‌মে বরাদ্দ নি‌য়ে এসব বীজ বাজা‌রে বি‌ক্রির চেষ্টা কর‌ছিল।

অভিযোগ অস্বীকার করে জিয়াউর রহমান ব‌লেন, ‘ভ‌্যানচাল‌কের ফোন পে‌য়ে ঘটনাস্থ‌লে গে‌লেও বীজগু‌লো পাচা‌রের বিষ‌য়ে আমি জানি না। আটককারীকে আমি কোনও টাকা দেওয়ার প্রস্তাবও দেইনি।’ ত‌বে বীজগু‌লো উপ‌জেলা কৃ‌ষি অ‌ফি‌সের স্টোর থে‌কে বের করা হ‌য়ে‌ছিল এবং তার ভাই বীজ ব‌্যবসা ক‌রেন ব‌লে স্বীকার ক‌রেছেন।

উপ‌জেলা কৃ‌ষি কর্মকর্তা শাহ‌রিয়ার হো‌সেন জানান, আটককৃত বীজগু‌লো জব্দ ক‌রে উপ‌জেলা প্রশাস‌নে নেওয়া হ‌য়ে‌ছে। তদন্ত ক‌রে আইনানুগ ব‌্যবস্থা নেওয়া হ‌বে।

ইউএনও আল ইমরান ব‌লেন, কৃষক‌দের জন‌্য বরাদ্দকৃত বীজ কীভা‌বে বাইরে এলো তা তদন্ত ক‌রে বের করা হ‌বে। এর সঙ্গে জ‌ড়িত সবার বিরু‌দ্ধে শক্ত ব‌্যবস্থা নেওয়া হ‌বে। বিষয়‌টি গুরু‌ত্বের সঙ্গে দেখ‌ছি। 

প্রসঙ্গত, এবছর রৌমারী উপ‌জেলায় মোট ৮ হাজার ৩৫০ জন ক্ষ‌তিগ্রস্ত কৃষ‌কের জন‌্য পুনর্বাসন প্রণোদনা বরাদ্দ দি‌য়ে‌ছে সরকার।

নতুন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত করার সিদ্ধান্ত

নতুন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত করার সিদ্ধান্ত


নিউজ ডেস্কঃ  নতুন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। ইতোমধ্যে এমপিও নীতিমালা সংশোধনের কাজ শেষ হয়েছে। চলতি মাসের শেষে অথবা আগামী জানুয়ারির প্রথম দিকে এমপিওভুক্তির অনলাইন আবেদন কার্যক্রম শুরু হবে।

তবে ভাড়া বাসা-বাড়িতে গড়ে ওঠা কোনো শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত করা হবে না। শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে জানা গেছে, এ বছর এমপিওভুক্তির নীতিমালায় বেশ কয়েকটি খাতে পরিবর্তন আনা হয়েছে। সংশোধিত নীতিমালায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তির জন্য সারাদেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোকে তিন এলাকায় বিভক্ত করা হয়েছে। সেগুলো যথাক্রমে- সিটি করপোরেশন, পৌরসভা ও মফস্বল এলাকা।

সংশোধিত নীতিমালায় বলা হয়েছে, নিম্ন মাধ্যমিক স্তরের (ষষ্ঠ থেকে অষ্টম) প্রতিটি শ্রেণিতে ৪০ জন করে শিক্ষার্থী থাকতে হবে। একটি শ্রেণিতে ৮০ জন শিক্ষার্থী হলে নতুন শাখা খুলতে পারবে। মাধ্যমিক স্তরে প্রতি শ্রেণিতে ৪০ জন করে শিক্ষার্থী থাকতে হবে।
সিটি করপোরেশন এলাকার উচ্চমাধ্যমিক স্তরে তথা একাদশ ও দ্বাদশ শ্রেণিতে মানবিক ও ব্যবসায় শিক্ষার প্রতি বিভাগে ৫০ জন করে মোট ১০০ জন শিক্ষার্থী থাকতে হবে। একই স্তরের মফস্বল এলাকায় প্রতি শ্রেণিতে ৪০ জন করে মোট ৮০ জন শিক্ষার্থী থাকতে হবে। তাদের মধ্যে পাবলিক পরীক্ষায় ৩৫ জন শিক্ষার্থী অংশ গ্রহণ করতে হবে। মফস্বল এলাকার বিজ্ঞান বিভাগে প্রতি শ্রেণিতে ৩০ জন করে শিক্ষার্থী থাকতে হবে।

এই নীতিমালায় বলা হয়েছে, সিটি করপোরেশন এলাকায় নিম্ন মাধ্যমিক ও মাধ্যমিক স্তরে পাবলিক পরীক্ষায় অংশ নেয়া শিক্ষার্থীদের ৭০ শতাংশ, পৌর এলাকায় ৬০ ও মফস্বল এলাকার প্রতিষ্ঠানে ৫৫ শতাংশ শিক্ষার্থী পাস করতে হবে। সিটি করপোরেশন এলাকায় উচ্চমাধ্যমিক স্তরে পাবলিক পরীক্ষায় অংশ নেয়া শিক্ষার্থীদের ৬৫ শতাংশ, পৌর এলাকায় ৬০ ও মফস্বল এলাকার প্রতিষ্ঠানে ৫৫ শতাংশ শিক্ষার্থী পাস করতে হবে। আর স্নাতক স্তরে সিটি করপোরেশেন এলকায় ৫৫ শতাংশ, পৌর এলাকায় ৫০ শতাংশ ও মফস্বল এলাকায় ৪৫ শতাংশ শিক্ষার্থী পাস করতে হবে।

এতে আরো বলা হয়েছে, ভাড়া বাসা-বাড়িতে পরিচালিত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত করা হবে না। বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নতুন করে বেশ কয়েকটি শিক্ষক-কর্মচারীর পদ সৃজন করা হয়েছে। আগের নীতিমালা অনুসরণ করে ২০১৯ সালে ২ হাজার ৭৩৭টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত করা হলেও এবার তা পরিবর্তন আনা হয়েছে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা জানান, এমপিও নীতিমালায় আগের চেয়ে কাম্য যোগ্যতা কম-বেশি করা হয়েছে। বিভিন্ন খাতে অর্জিত নম্বর হ্রাস ও বৃদ্ধি করে তা খসড়া চূড়ান্ত করা হয়েছে। শিগগিরই এটি সংসদীয় কমিটিতে পাঠানো হবে। সেখান থেকে অনুমোদনের পর তা অর্থ মন্ত্রণালয়ের অনুমোদন পেলে আদেশ জারি করবে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। নীতিমালা প্রকাশের পর পরই নতুন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তির জন্য আবেদন কার্যক্রম শুরু করা হবে। চলতি মাসের (ডিসেম্বর) শেষের দিকে অথবা আগামী বছরের জানুয়ারির শুরুতে আবেদন কার্যক্রম শুরু করা হতে পারে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব ও এমপিও নীতিমালা সংশোধন কমিটির আহ্বায়ক মমিনুর রশিদ আলম বলেন, ‘নীতিমালা সংশোধন কাজ শেষ, এখন এটি চূড়ান্ত অনুমোদনের জন্য পাঠানো হবে। অনুমোদন দেয়া হলে নতুন করে অনলাইনের মাধ্যমে আবেদন সংগ্রহ করে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তি কার্যক্রম শুরু করা হবে।’
তথ্যের উৎসঃ সাম্প্রতিক দেশকাল 

শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত

শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত

নিউজ ডেস্কঃ শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা আবুল খায়ের আজ সোমবার গনমাধ্যমকে এই তথ্য জানান।

আবুল খায়ের জানান, গতকাল রোববার রাতে পরীক্ষার প্রতিবেদনে শিক্ষামন্ত্রীর করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়। বর্তমানে তিনি বাসায় থেকেই চিকিৎসা নিচ্ছেন। শারীরিক কোনো জটিলতা নেই।

৭ ডিসেম্বর হানাদার মুক্ত হয় মোংলা সুন্দরবন

 ৭ ডিসেম্বর হানাদার মুক্ত হয় মোংলা সুন্দরবন
৭ ডিসেম্বর হানাদার মুক্ত হয় মোংলা সুন্দরবন

মোংলা প্রতিনিধিঃ ১৯৭১ সালের ৭ ডিসেম্বর মোংলা ও সুন্দরবন এলাকা হানাদার মুক্ত হয়। দীর্ঘ ৯ মাস রক্তক্ষয়ী যুদ্ধে পাক হানাদারদের হটিয়ে দিয়ে এই এলাকা মুক্ত করেছেন এ অঞ্চলের বীর মুক্তিসেনারা। পাক সেনাদের তাড়িয়ে উড়ানো হয়েছিল বাংলার লাল সবুজের পতাকা।

মোংলা উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমান্ডার ফকির আবুল কালাম আজাদ বলেন, ৯নং সেক্টর কমান্ডার মেজর এম এ জলিল, সাব সেক্টর কমান্ডার মেজর (অবঃ) জিয়া উদ্দিন আহম্মেদ ও কবির আহমেদ মধুর নেতৃত্বে এখানকার মুক্তিযোদ্ধারা সুন্দরবনে ৫ টি ক্যাম্প স্থাপন করে। এসময় সুন্দরবন ইউনিয়নের দামেরখন্ড এলাকায় চলেছিল পাক হানাদারদের নেতৃত্বে নিরীহ মানুষের উপর অত্যাচার, নারী নির্যাতন ও গণহত্যা। কোন কিছু না বুঝে ওঠার আগেই ওই এলাকার কুখ্যাত রাজাকার কমান্ডার রজ্জব আলী ফকিরসহ তার সহযোগীদের নির্দেশে অনেক যুবতী ও গৃহবধূকে তুলে নিয়ে যায় হানাদার বাহিনী। তার মধ্যে এলাকার গৃহবধূ তরুলতা শীল নামের একজনকে ধরে নিয়ে আটকে রাখে প্রায় সাড়ে ৩ মাস। এসময়কালে প্রতি দিন রাত তার উপর চলে পাষবিক ও শারীরিক নির্যাতন। পরে স্থানীয় এক লোকের সহায়তায় ফিরে পায় তার আপনজনদের। এমন দুঃসহ স্মৃতির কথা এ প্রতিবেদকের কাছে তুলে ধরেন অজিৎ কুমার প্রামানিকের স্ত্রী তরুলতা শীল।সেই স্মৃতি আর কষ্টের কথা বুকে নিয়ে আজও বেঁচে আছে সেই বীরঙ্গনা নারী। মুক্তিযোদ্ধাদের গঠন করা ওই ৫টি ক্যাম্প থেকে পাক সেনাদের বিরুদ্ধে শুরু করে সম্মুখ যুদ্ধ। মুক্তিসেনারা ৪ ডিসেম্বর মোংলায় প্রবেশ করলে পাক সেনাদের সাথে পর্যাক্রমে খন্ড খন্ড সম্মুখ যুদ্ধ শুরু হয়। সেনা কর্মকর্তাদের তত্বাবধানে সুন্দরবনের ক্যাম্পগুলোতে যুদ্ধে অংশগ্রহণকারীদের প্রশিক্ষণ দেয়া হতো। আর সুবিধা বুঝে আক্রমন করা হতো। ৭ ডিসেম্বর মোংলা ও সুন্দরবনের সর্বত্র মুক্তিযোদ্ধাদের দখলে চলে আসে। হানাদার মুক্ত হয় মোংলাসহ সুন্দরবনের আশপাশ এলাকা।

মোংলা পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা শেখ আব্দুর রহমান বলেন, ডিসেম্বর মাসের শুরুর দিকে পাকিস্থানী হানাদার বাহিনী মোংলায় প্রবেশ করে। বিভিন্ন সূত্র থেকে হানাদার বাহিনীর তৎপরতার খবর জানতে পেরে কৌশল অবলম্বন করি আমরা।  হানাদার বাহিনীর অবস্থান শনাক্ত করে সেখানে সম্মুখ যুদ্ধ করি। এক পর্যায়ে মোংলা ছেড়ে পালাতে বাধ্য হয় পাকিস্থানী রাজাকাররা।
মুক্তিযুদ্ধের দুঃসহ স্মৃতির কথা স্মরণ করতে গিয়ে রণাঙ্গনের এই বীরযোদ্ধা বলেন, সুন্দরবন এলাকায় মুক্তিযোদ্ধাদের আলাদা আলাদা ইউনিট রাজাকারদের বিরুদ্ধে সশস্ত্র প্রতিরোধ গড়ে তোলে। সেখানেও টিকতে পারেনি হানাদার বাহিনী। এভাবেই ১৯৭১ সালের ৭ ডিসেম্বর হানাদার মুক্ত হয় মোংলা ও সুন্দরবন এলাকা।

চট্টগ্রাম শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরের মোড়ে বিক্ষোভ মিছিল

চট্টগ্রাম শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরের মোড়ে  বিক্ষোভ মিছিল
চট্টগ্রাম শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরের মোড়ে  বিক্ষোভ মিছিল
বেলাল উদ্দিন সিনিয়র স্টাফ রিপোর্টারঃ জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্য ভাংচুর ও অবমাননার প্রতিবাদে চট্টগ্রাম শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরের মোড়ে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেন চট্টগ্রাম মহানগর পতেঙ্গা থানা  আওয়ামীলীগ নেতা ওয়াহিদ আলম চৌধুরীর নেতৃত্বে  আওয়ামীলীগ যুবলীগ ছাত্রলীগ সদস্যবৃন্দ  ।

মৈত্রি দিবস উপলক্ষে সাতক্ষীরা নাগরিক কমিটির আয়োজনে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত

মৈত্রি দিবস উপলক্ষে সাতক্ষীরা নাগরিক কমিটির আয়োজনে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত
মৈত্রি দিবস উপলক্ষে সাতক্ষীরা নাগরিক কমিটির আয়োজনে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত
আজহারুল ইসলাম সাদী, স্টাফ রিপোর্টার
"মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বাংলাদেশ ভারত মৈত্রী সেতু বন্ধন অটুট থাকুন" এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে মৈত্রী দিবস উপলক্ষে সাতক্ষীরা জেলা নাগরিক কমিটি আয়োজিত এক আলোচনা সভা,

রোববার (৬ ডিসেম্বর-২০২০) বিকাল ৪টায় সাতক্ষীরা জেলা পুরাতন আইনজীবী সমিতির মিলনায়তনে বাংলাদেশ সচেতন নাগরিক কমিটি সাতক্ষীরা জেলা শাখার আহবায়ক বাবু বিশ্বজিৎ সাধু'র সভাপতিত্বে সদস্য সচিব এডভোকেট আল মাহমুদ পলাশের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত হয়েছে। 

সভায় বক্তব্য রাখেন, সাতক্ষীরা জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক আইন সম্পাদক এড. ওসমান গনি, জেলা কৃষকলীগের সাধারণ সম্পাদক মনজুর হোসেন, জেলা জাসদের  সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ইদ্রিস আলী, বঙ্গবন্ধু পেশাজীবী পরিষদের সাধারণ সম্পাদক এড. প্রবীর মুখার্জি, আইনজীবী প্রাতিষ্ঠানিক শাখার ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এড. পঙ্কজ সরকার, জেলা কৃষকলীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক প্রভাষক শেখ হেদায়তুল ইসলাম, মুক্তিযোদ্ধা মনোরঞ্জন বন্ধোপধ্যায়, লুৎফর রহমান টুকু,
আব্দুর রহমান, আসাদুজ্জামান লাবলু, হামিদুজ্জামান সুজন, আজহারুল ইসলাম সাদী, আরিফুর রহমান জেমস,
এড. সুনিল ঘোষ,আফছার আলী, আশরাফুল ইসলাম,
আবু রায়হান, আবুল বাশার, গাজি আব্দুর রশিদ, মোঃ সিরাজুল ইসলাম, মন্টু কুমার দাশ প্রমুখ।

আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন, বাংলাদেশ স্বাধীনতা পেতো না যদি ভারত সহযোগিতা না করতো।
মুক্তিযুদ্ধে ভারত সার্বিক সহযোগিতা করে স্বাধীন রাষ্ট্র প্রতিষ্টায় সহযোগিতা করায় বক্তারা তৎকালীন ভারতের রাষ্ট্র প্রধান ইন্দ্রিরা গান্ধীর প্রতি কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন।

সভায় বক্তারা আরো বলেন, সম্প্রতি একটি চক্র বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভেঙে যে, অন্যায় করেছে সেটা ক্ষমার অযোগ্য। 

সভাপতি তার বক্তব্যে বলেন, বর্তমান প্রজন্মকে মুক্তিযুদ্ধের গল্প শুনিয়ে, বাংলাদেশ ও বঙ্গবন্ধু সম্পর্কে জানতে বুঝতে আগ্রহী করে তুলতে হবে।

স্বপ্নের টেউ সমাজকল্যাণ সংস্থা কুলাউড়া শাখার পরিচিত সভা সম্পন্ন

স্বপ্নের টেউ সমাজকল্যাণ সংস্থা কুলাউড়া শাখার পরিচিত সভা সম্পন্ন
স্বপ্নের টেউ সমাজকল্যাণ সংস্থা কুলাউড়া শাখার পরিচিত সভা সম্পন্ন
 
মোঃরেজাউল ইসলাম শাফি,কুলাউড়া উপজেলা প্রতিনিধিঃস্বপ্নের ঢেউ সমাজকল্যাণ সংস্থা  কুলাউড়া উপজেলা শাখার নবগঠিত(২০২০-২১) কমিটির পরিচিতি সভা সম্পন্ন।

 সমাজ ও রাষ্ট্রের স্বার্থে মানবতার কল্যাণে কাজ করে যাচ্ছে  সপ্নের ঢেউ সমাজকল্যাণ সংস্থা। 

৬ ডিসেম্বর রবিবার কুলাউড়ার একটি অভিজাত  রেস্টুরেন্টে সংগঠনের সভাপতি মোঃ জাবের হুসাইনের সভাপতিত্বে এবং  সাধারণ সম্পাদক সাঈদ আহমেদ ও যুগ্মসাধারণ সাম্পাদক বুরহান উদ্দিন এর যৌথ পরিচালনায়  পরিচিতি সভা অনুষ্ঠিত হয় ।

উক্ত সভায় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, সংগঠনের যুগ্মসাধারণ সম্পাদক, মুমিনুল ইসলাম সাব্বির, 
সহ-সম্পাদক, জাহেদ আহমেদ , আব্দুল মুমিন।

সাংগঠনিক সম্পাদক আলমগীর হোসেন, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক নাহিদ চৌঃ, প্রচার সম্পাদক রায়হান আহমেদ, 
সহ-প্রচার সম্পাদক আকাশ আহমেদ, দপ্তর সম্পাদক তানিম আহমেদ, সহ-দপ্তর সম্পাদক সাইফুর রহমান, সমাজকল্যাণ সম্পাদক, কাউসার আমীর,  সহ-সমাজ সম্পাদক, বদরুল ইসলাম পংকি ,  তথ্য ও যোগাযোগ বিষয়ক সম্পাদক, হাবিবুর রহমান হোসাইন,  ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক, হাফিজ শাকিল আহমেদ,  সহ-স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক, মাহবুবুর রহমান টিটু, যুব ও শিশু বিষয়ক সম্পাদক, আরিফুল ইসলাম, 

এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন, তুহিন আহমেদ, সুমাইয়া, পিয়া আক্তার, সাদিক প্রমুখ।

উক্ত সভায় সভাপতি জাবের হুসাইন বলেন, সামজ ও রাষ্ট্রের স্বার্থে মানুষের কল্যাণে কাজ করবে স্বপ্নের ঢেউ সমাজকল্যাণ সংস্থা কুলাউড়া উপজেলা শাখা, সংগঠনের প্রতিটি কাজ হবে অসহায় মানুষের কল্যাণে, সমাজের ও দেশের কল্যাণে।