মুজিববর্ষে ব্যাডমিন্টন টুর্নামেন্ট ৩২ টি দল নিয়ে আয়োজন

মুজিববর্ষে ব্যাডমিন্টন টুর্নামেন্ট ৩২ টি দল নিয়ে আয়োজন

আকরাম হোসাইন মৌলভীবাজার জেলা প্রতিনিধি :: মৌলভীবাজারের বড়লেখা উপজেলার অফিসার্স ক্লাব, বড়লেখার আয়োজনে মুজিববর্ষ ব্যাডমিন্টন টুর্নামেন্ট -২০২০ এর শুভ উদ্বোধন করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার, বড়লেখা ও অফিসার্স ক্লাব, বড়লেখার সভাপতি মোঃ শামীম আল ইমরান। বড়লেখা উপজেলার বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা, কর্মচারী ও জনপ্রতিনিধিদের অংশগ্রহণে ৩২ টি দল নিয়ে এই টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত হচ্ছে। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কর্মকর্তা, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা সহ বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা, কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন।

সাবেক প্রতিমন্ত্রী আ খ ম জাহাঙ্গীর হোসাইন- এর মৃত্যুতে পরিবেশ মন্ত্রীর শোক

সাবেক প্রতিমন্ত্রী আ খ ম জাহাঙ্গীর হোসাইন- এর মৃত্যুতে পরিবেশ মন্ত্রীর শোক

 

আকরাম হোসাইন মৌলভীবাজার জেলা প্রতিনিধি :: সাবেক বস্ত্র প্রতিমন্ত্রী ও পটুয়াখালী ৩ আসনের প্রাক্তন সংসদ সদস্য আ খ ম জাহাঙ্গীর হোসাইন- এর মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী মোঃ শাহাব উদ্দিন এমপি।
মন্ত্রী আজ এক শোকবার্তায় মরহুমের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন এবং তাঁর শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান। 
শোকবার্তায় পরিবেশ মন্ত্রী জানান, দলের দুঃসময়ে ও সকল আন্দোলন-সংগ্রামে বঙ্গবন্ধুর আদর্শ প্রতিষ্ঠায় বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আ খ ম জাহাঙ্গীর হোসাইন এর অবদান স্মরণীয় হয়ে থাকবে। তাঁর মৃত্যুতে দেশের রাজনৈতিক অঙ্গনে এক শূন্যতার সৃষ্টি হলো। 
উল্লেখ্য, বিশিষ্ট রাজনীতিক আ খ ম জাহাঙ্গীর হোসাইন (৬৬) আজ বিকালে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)।

৮নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদে আবু মোঃ নাহিদ ব্যাপক প্রচার প্রচারনায় এগিয়ে

৮নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদে আবু মোঃ নাহিদ ব্যাপক প্রচার প্রচারনায় এগিয়ে

 
আব্দুর রাজ্জাক,  মানিকগঞ্জ প্রতিনিধিঃ
আসন্ন ২৮ ডিসেম্বর মানিকগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনে  ৮নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদে আবু মোঃ নাহিদ ব্যাপক প্রচার প্রচারনায় এগিয়ে রয়েছে।  

কাউন্সিল প্রার্থী আবু মোঃ নাহিদ বলেন আমার অঙ্গিকার ৮নং ওয়ার্ডের উন্নয়ন। এই ওয়ার্ডে পৌরসভার পানি ও গ্যাস এর ব্যবস্থা নেই, রাস্তা ঘাট ভালো না।
আরেকটি বড় সমস্যা হলো পাশে কালিগঙ্গা নদী বন্যার পানিতে কিছু অংশ ভেঙ্গে গেছে এ ওয়ার্ড টি একেবারে হুমকির মুখি। 
আমি যদি কাউন্সিল হতে পারি তাহলে মেয়র এর মাধ্যমে একটি স্থায়ী বেড়িবাদ নির্মাণ অন্য অন্য  অভাব গুলো পূরণ করার জন্য চেষ্টা করবো ইনশাআল্লাহ। তিনি আরো বলেন আমি ৮নং ওয়ার্ড এর একজন নাগরিক। অত এব ৮নং ওয়ার্ড  আমার আমি নির্বাচনে জয় হলে ৮নং ওয়ার্ড থেকে মাদক ও সন্ত্রাস মুক্ত একটি আধুনিক  ওয়ার্ড উপহার দিতে চাই। 

আবু মোঃ নাহিদ বলেন আমি 
নির্বাচনে পানির বোতল মার্কা বিজয় অর্জন করবো ইনশাআল্লাহ।  কারণ আমি ব্যাপক পরিমাণে  জন সাধারণের সারা পেয়েছি। আমি ৮নং ওয়ার্ডের সকল জন গনের নিকট দোয়া চাই।

অনলাইন রচনা প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান

অনলাইন রচনা প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান

মোঃ আওলাদ হোসেন, জেলা প্রতিনিধি, ভোলা (দৌলতখান)মহান বিজয় দিবস ২০২০ উপলক্ষে ভোলার দৌলতখান উপজেলায় অনলাইন রচনা প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২৪ ডিসেম্বর) দৌলতখান উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ কাওছার হোসেন এর সভাপতিত্বে রচনা প্রতিযোগিতার বিজয়ীদের মাঝে সকাল ১১ টায় তাহার নিজ কার্যালয়ে পুরস্কার বিতরন করা হয়েছে।

বিজয়ীদের তিনটি গ্রুপে বিভক্ত করা হয়েছে, ১ম ধাপ ৬ষ্ঠ থেকে ৮ম শ্রেনি পর্যন্ত,২য় ধাপ ৯ম থেকে ১০ম শ্রেনি পর্যন্ত এবং ৩য় ধাপ কলেজ। 
মাধ্যমিক পর্যায়ে রচনার বিষয় ছিল "বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের বাংলাদেশ " কলেজ পর্যায়ে রচনার বিষয় ছিল "মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় ভবিষ্যৎ বাংলাদেশ।" ষষ্ঠ থেকে অষ্টম শ্রেণি পর্যায়ে প্রথম ও দ্বিতীয় হয়েছে দৌলতখান সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় এবং তৃতীয় হয়েছে খাদিজা খানম মাধ্যমিক বিদ্যালয়।

নবম থেকে দশম শ্রেনি পর্যায়ে প্রথম হয়েছে দৌলতখান সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় দ্বিতীয় হয়েছে জয়নুল আবদীন ল্যাবরেটরি হাই স্কুল এবং তৃতীয় হয়েছে দৌলতখান সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়।
কলেজ পর্যায়ে প্রথম,দ্বিতীয় ও তৃতীয় হয়েছে দৌলতখান সরকারি আবু আব্দুল্লাহ কলেজ। 
এদের মধ্যে প্রথম স্থান অর্জন করেছেন দৌলতখান আবু আবদুল্লাহ সরকারি কলেজের একাদশ শ্রেণীর ছাত্র আল জিহাদ। জিহাদ যে কোন সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানেই অধিকাংশ সময়ই কৃতিত্বের সাক্ষর রাখেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার এবং জয়নুল আবদীন ল্যারেটরি হাই স্কুলের প্রধান শিক্ষক মোঃ আব্দুল্লাহ আল নোমান প্রমুখ।

মোবাইল ও কাগজপত্র থানায় জমা দিয়ে মহত্ত্বের পরিচয় দিলেন রকেট

মোবাইল ও কাগজপত্র  থানায় জমা দিয়ে মহত্ত্বের পরিচয় দিলেন রকেট

কলিন চন্দ্র (ইতু রায়),ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি:ঠাকুরগাঁওয়ের রাণীশংকৈলে ২৩ ডিসেম্বর বুধবার রাতে একটি মোবাইল সেট সেম্ফোনী বিএল ৯৭ ও সাথে থাকা প্রয়োজনীয় হিসাবের কাগজপত্র কুড়িয়ে পান থানা গেটের সামনে রকেট কম্পিউটারের স্বত্তাধিকারী আফসার আলী রকেট।তিনি এসব কুড়িয়ে পাওয়ার পর তৎক্ষণাৎ গিয়ে রাণীশংকৈল থানায় জমা দিয়ে দেন।

নিজ দোকানের সামনে মহাসড়কের উপরে পড়ে থাকা অবস্হায় রাত ৯ টায় সময় মোবাইল সহ প্রয়োজনীয় কাগজপত্র গুলো কুড়িয়ে পান বলে রকেট জানান।

রাণীশংকৈল থানার পুলিশ পরিদর্শক আব্দুল লতিফ সেখ ও সাব ইন্সপেক্টর আহসান হাবিবের হাতে মোবাইল সেট ও প্রয়োজনীয় কাগজপত্র জমা দিয়ে মহানুভবতার পরিচয় দেন রকেট।

এ বিষয়ে ওসি তদন্ত আব্দুল লতিফ শেখ বলেন মোবাইল ও প্রয়োজনীয় কাগজপত্র থানায় জমা দিয়ে রকেট অনেক মহত্ত্বের কাজ করেছে।প্রমাণ সাপেক্ষে প্রকৃত মালিককে হারিয়ে ফেলা মোবাইল সহ সবকিছু ফেরত দিতে প্রয়োজনীয় উদ্দোগ গ্রহন করা হবে।

লাকসাম ১নং খাস খতিয়ান ভূক্ত প্রায় ৭৮ শতক সরকারি সম্পত্তি উদ্ধার

লাকসাম ১নং খাস খতিয়ান ভূক্ত প্রায় ৭৮ শতক সরকারি সম্পত্তি উদ্ধার


মোঃ রবিউল হোসাইন সবুজ, লাকসাম প্রতিনিধিঃ কুমিল্লার লাকসামে প্রায় ২ কোটি টাকা মূল্যের ৭৮ শতক সরকারি সম্পত্তি উদ্ধার করা হয়েছে। উপজেলার মুদাফরগঞ্জ ইউনিয়নের চিকোনিয়া গ্রামে অভিযান চালিয়ে এ সম্পত্তি উদ্ধার করা হয়। বুধবার(২৩ ডিসেম্বর)  দিনব্যাপী উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) উজালা রানি চাকমার নেতৃত্বে এ অভিযান পরিচালনা করা হয়। এ সময় কানুনগো ইদ্রিস মিয়া ও লাকসাম থানা পুলিশ উপস্থিত ছিলেন।

উপজেলা ভূমি অফিস জানায়, দীর্ঘদিন যাবত এ এলাকার লোকমান হোসেন ওরফে মনির চৌধুরী এবং নজির আহমেদ ভূইয়া নামে দুই প্রভাবশালি ব্যক্তি লাকসাম-মুদাফরগঞ্জ পাকা সড়কের সংলগ্ন ২২০নং মুদাফরগঞ্জ মৌজার ১নং খাস খতিয়ান ভূক্ত ৪৬৩২ দাগের নাল শ্রেণির ০.৭৮০০ একর ভূমি অবৈধভাবে দখল করে রেখেছিল।

এ বিষয়ে লাকসাম উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) উজালা রানি চাকমা জানান, উদ্ধারকৃত এ সম্পত্তিতে মুজিব বর্ষ উপলক্ষে অসহায় গৃহহীনদের আবাসনের জন্য ব্যবহার করা হবে।

খেলাধুলা শুধু শারীরিক সুস্থতা নয়, মানসিক প্রশান্তিও দেয়: লায়ন মোস্তুফা কামাল

 খেলাধুলা শুধু শারীরিক সুস্থতা নয়, মানসিক প্রশান্তিও দেয়: লায়ন মোস্তুফা কামাল


মোস্তাকিম ফারুকী:মুজিব বর্ষ বিজয় দিবস খো খো টুর্নামেন্ট-২০২০ ফাইনালের পুরুষ্কার বিতরনী ও চ্যাম্পিয়ন এ্যাথলেটিকদের সংবর্ধনার আয়োজন করেন যশোর জেলা ক্রিয়া সংস্থা। উক্ত আনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিল যশোর জেলার জেলা প্রশাসক তমিজুল ইসলাম খান, লায়ন্স ক্লাব ইন্টারন্যাশনাল ডিস্ট্রিক্ট৩১৫এ১ এর দ্বিতীয় ভাইস গভর্নর লায়ন ইঞ্জিনিয়ার মোস্তুফা কামাল, যশোর ক্রিয়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক মুক্তিযোদ্ধা ইয়াকুব কবিরসহ জেলার বিশিষ্ট ক্রিড়া ব্যাক্তিত্ব।

উক্ত অনুষ্ঠানে জেলা প্রশাসক তমিজুল ইসলাম বলেন, সরকারি দায়িত্ব পালনে দেশের বিভিন্ন জেলায় কাজ করার অভিজ্ঞতা আমার আছে। কিন্তু এই জেলায় এসে খেলাধুলার প্রতি সবার আন্তরিকতা ও আগ্রহ দেখে আমি মুগ্ধ হয়েছি। খেলাধুলা মানুষকে নেতিবাচক কর্মকান্ড থেকে বিরত রাখে এই ধারণা সবার মাঝে ছড়িয়ে দেওয়ায় ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন ইঞ্জিনিয়ার মোস্তুফা কামালকে এবং খেলাধুলার প্রতি জেলার বিশিষ্ট ব্যাক্তিবর্গ যেন পৃষ্ঠপোষকতা অব্যাহত রাখে সেই আহবান জানান।
লায়ন ইঞ্জিনিয়ার মোস্তুফা কামাল তার বক্তব্যে বলেন, এই টুর্নামেন্টে খেলতে তোমাদের অনেকটা পথ পাড়ি দিয়ে আসতে হয়েছে। খেলতে আসা একঝাঁক তরুণ তরুণীদের উপদেশ দিয়ে বলেন, সাহসের সঙ্গে লড়ে যাও। খেলাধূলা আমাদের শারীরিকভাবে সুস্থ রাখার পাশাপাশি মানসিক প্রশান্তিও দেয়। এই করোণাকালীন সময়ে আমরা প্রত্যেকেই অনুধাবন করতে পেরেছি মানসিক প্রশান্তি কতটা গুরুত্বপূর্ণ। কর্মবিহীন জীবনে নানা ধরনের নেতিবাচক চিন্তা আমাদের মাথায় উদয় হয়, যা আমাদের সব সময় উদ্ধিগ্ন রাখে এবং শারীরিকভাবে অসুস্থ করে তুলে। কিন্তু খেলাধুলায় মনোযোগ থাকলে সবসময় আমরা সতেজ থাকতে পারি।
খেলাধুলা আমাকে অনেক কিছু শিখিয়েছে। স্কুলজীবন থেকেই শিখেছি, কোনো প্রতিযোগিতায় নামার আগে কীভাবে প্রস্তুতি নিতে হয়, কীভাবে পরিকল্পনা করতে হয় আর কীভাবে সেই পরিকল্পনা বাস্তবে রূপ দিতে হয়। বিপক্ষ দল এবং নিজের দলের খেলোয়াড়দের সম্মান করা খুব জরুরি। আমি জানি সবাই এখানে জিততে এসেছে। সবাই জয়ী হবে না। কিন্তু তুমি নিশ্চয়ই সবার হৃদয় জিতে নিতে পারো। হৃদয় জেতার সঙ্গে খেলায় হারজিতের সম্পর্ক নেই।
রানারআপ দলকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, পরাজয় আমাকে শিখিয়েছে, কীভাবে আবার মাথা তুলে দাঁড়াতে হয়, সাহসের সঙ্গে লড়াই চালিয়ে যেতে হয়। তাই তোমাদের জন্য আমার বার্তা—প্রতিযোগিতার মধ্যে থাকো, উদ্যমের সঙ্গে লড়ে যাও। আমার বিশ্বাস অনেক বাধা পেরিয়েই তোমরা আজকের অবস্থানে পৌঁছেছ। উদ্যম ধরে রেখে স্বপ্নের পেছন ছুটতে থাকো। আমরা অনেক সময় ছুটতে ছুটতে ক্লান্ত হয়ে যাই। পেছনে তাকিয়ে ভাবি, কিছুই তো পেলাম না। ভুলে যেয়ো না, সাফল্য কিন্তু পেছনে নয়, সামনে থাকে। তাই সামনের দিকে তাকিয়ে উদ্যমের সঙ্গে পরিশ্রম করে যাও। প্রতিদিন সকালে ঘুম থেকে ওঠার একটা কারণ খুঁজে নাও। মাঠে নামতে হবে, খেলতে হবে। অনেক ছেলেমেয়েকে দেখি আইপড, ল্যাপটপে ভিডিও গেমস নিয়ে মেতে থাকে। কিন্তু ঘরে বসে স্রেফ আঙুলের ব্যায়াম করলে তো হবে না। এই শক্তিটা মাঠে ব্যয় করা উচিত। কারণ খেলাধুলা শুধু সুস্থতাই দেয় না, সুখও দেয়। আমরা পুরো জাতি খেলোয়াড় হতে পারব না। কিন্তু একটা সুখী জাতি তো আমরা হতেই পারি।

কয়রায় লজিক প্রকল্পের উপজেলা পর্যায়ে সম্বনয় সভা

কয়রায় লজিক প্রকল্পের উপজেলা পর্যায়ে সম্বনয় সভা

কয়রা(খুলনা) প্রতিনিধিঃ স্থানীয় সরকার বিভাগ খুলনার উদ্যোগে লোকাল গভর্ণমেন্ট ইনিশিয়েটিভ অন ক্লাইমেট চেঞ্জ (লজিক) প্রকল্পের বিভিন্ন বিষয় নিয়ে উপজেলা পর্যায়ে সরকারি কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধি, সুশিল সমাজের প্রতিনিধিসহ উপকারভোগী সদস্যদের সাথে এক প্রকল্প সম্বনয় সভা অনুষ্ঠিত হয়।

বৃহস্পতিবার বেলা ১১ টায় কয়রা উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে উপজেলা নির্বাহী অফিসার অনিমেষ বিশ্বাসের সভাপতিত্বে প্রকল্প সম্বনয় সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন স্থানীয় সরকার খুলনার উপ-পরিচালক মোঃ ইকবাল হোসেন।বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব এস এম শফিকুল ইসলাম ও ভাইস চেয়ারম্যান এ্যাডঃ কমলেশ চন্দ্র সানা। এতে বক্তব্য রাখেন উপজেলা কৃষি অফিসার এস এম মিজান মাহমুদ, ইউপি চেয়ারম্যান মোহাঃ হুমায়ুন কবির, আলহাজ্ব সরদার নুরুল ইসলাম, আব্দুল্লাহ আল মামুন লাভলু, কবি জিএম শামছুর রহমান, লজিক প্রকল্পের জেলা সম্বনয়কারি শেখ ফয়সাল শাহ রিপন, মোঃ আসাদুল হক, কপোতাক্ষ কলেজের অধ্যক্ষ অদ্রিশ আদিত্য মন্ডল, প্যানেল চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আবুল কাশেম, সাংবাদিক আনিসুজ্জামান, উপকারভোগী সদস্য আশা আক্তার প্রমুখ।

বগুড়া জুড়েই মোড়ে মোড়ে শীতের ভাপা পিঠা

বগুড়া জুড়েই মোড়ে মোড়ে শীতের ভাপা পিঠা
বগুড়া জুড়েই মোড়ে মোড়ে শীতের ভাপা পিঠা
মোঃ সবুজ মিয়া বগুড়া প্রতিনিধিঃপিঠা পছন্দ করে না এমন মানুষ কম। শীত আসলেই বাঙালির ঘরে ঘরে পিঠা তৈরির ধুম পড়ে। নানান রঙের পিঠা তৈরি করা হয় ঘরে ঘরে।  এছাড়া শীতে শহরের অলি গলি কিংবা পাড়া মহল্লায় পিঠা তৈরিতে ব্যস্ত থাকেন অনেক।

বাহারি ধরনের পিঠা তৈরি করে বিক্রি করেও আয় করে থাকেন নিম্ন আয়ের অনেকে। তেমনি একজন বগুড়ার বেগুনি খালা। এই নামে সবার কাছে পরিচিত তিনি। বগুড়া শহরের খান্দার এলাকার শহীদ চান্দু স্টেডিয়ামের সামনে দীর্ঘ দুই যুগ ধরে পিঠা বিক্রি করছেন বেগুনি খালা। নানান ধরনের পিঠা বিক্রি করছেন। রয়েছে ৬জন কর্মচারিও।

পিঠাপিয়াসুুরা জানায়, বেগুনি খালার পিঠা মানেই অন্যরকম স্বাদ। একের পর এক লাইন ধরে পিঠা কিনছের ক্রেতারা। দূর দূরান্ত থেকেও আসছেন অনেকে। বেগুনী খালার পিঠার সুনাম বগুড়াসহ আশপাশের জেলায় ছড়িয়ে পড়েছে। গরম পিঠা খেতে বিকেল থেকে ভিড় লেগে থাকে বেগুনী খালার দোকানে। শহরের বিভিন্ন স্থানে শীতকালীন নানা ধরনের খাবারের দোকান থাকলেও বেগুনী খালার দোকানের পিঠার চাহিদা বেশি।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় গিয়ে দেখা যায়, বেগুনি খালার ৬টি মাটির চুলায় পিঠা তৈরিতে ব্যস্ত তার কর্মচারিরা। যেন দম ফেলারও ফুরসত নেই তাদের। কোন চুলায় মিস্টি কুশলী, কোন চুলায় ঝাল কুশলী, আবার একটি চুলায় ভাপা পিঠা, অন্যগুলোতে চিতই পিঠা, তেল পিঠা, চালের ঝাল পিঠাসহ নানা ধরনের পিঠা তৈরি করা হচ্ছে।

নারিকেলের মিস্টি কুশলী প্রতিটি ১০ টাকা, ঝাল কুশলী ৮ টাকা, বুটের কুশলী ৮ টাকা করে, ভাপা পিঠা প্রতিটি ১০ টাকা, চিতই পিঠা ১০ টাকা করে, তেল পিঠা ১০ টাকা করে, চালের ঝাল পিঠা ১৫ টাকা করে, ডিমের ঝাল পিঠা ২৫ টাকা করে বিক্রি হয়।

বেগুনী বেগম জানান, প্রায় দুই যুগ ধরে তিনি পিঠা বিক্রি করে আসছেন। শুরুতে তিনি একলা পিঠা তৈরি করে পিঠা বিক্রি করলেও বর্তমানে ক্রেতার চাহিদা বাড়ার সাথে সাথে তার দোকানে ৬ জন কর্মচারী রয়েছে। দিন হিসেবে তাদের বেতন দেন। প্রতিদিন ৬-৭ হাজার টাকার পিঠা বিক্রি করে থাকেন। তিনি জানান, শীতের সময় ভালো ব্যবসা হয়। প্রতিদিন সব খরচ মিটিয়ে হাজার টাকার মত লাভ থাকে।

বেগুনী বেগমের দোকানের কর্মচারী কমলা বেগম ও রহমত আলী জানান, শীত আসতেই দোকানে কাজের চাপ অনেক। পিঠা বানানো থেকে সব কিছু করতে হয়। ক্রেতাদের চাহিদা মেটাতে ব্যস্ত সময় পার হয়। 

পিঠা বিক্রেতা বেগুনী বেগম জানান, তার স্বামী ইদ্রিস আলী বেপারী, সহযোগী রাবেয়া বেগম, সিফাত, করিমুল্লাহসহ আরো দু'জন প্রত্যেক বছর শীতের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত তারা পিঠা-পুলির ব্যবসা করে থাকেন। তাদের সবার বাড়ি শহীদ চাঁন্দু স্টেডিয়াম এলাকায়। তরুণ সহযোগী সিফাত জানান, বেগুনী বেগম ও তার স্বামী ইদ্রিস আলী সম্পর্কে তার দাদা-দাদী।

বেগুনী বেগম বলেন, প্রায় বিশ বছর ধরে শীতকালীন পিঠা-পুলির ব্যবসা করে আসছেন তারা। শীত শেষে অন্য কাজ করেন। তিনি জানান, বিকাল হলেই তারা পিঠার দোকান দিয়ে বসেন।

পটিয়ার নাইখাইন কৃষকদের মাঝে হক কমিটির নেতা দিদারুল আলম এর সার বিতরণ

পটিয়ার নাইখাইন কৃষকদের মাঝে হক কমিটির নেতা দিদারুল আলম এর সার বিতরণ
হক কমিটির নেতা দিদারুল আলম এর সার বিতরণ
সেলিম চৌধুরী,  স্টাফ রিপোর্টারঃমহান ১০ পৌষ বিশ্বঅলি শাহানশাহ হযরত সৈয়দ জিয়াউল হক মাইজভাণ্ডারী (কঃ)র ৯২ তম পবিত্র খোশরোজ শরীফ উপলক্ষে মাইজভাণ্ডারী গাউসিয়া হক কমিটি পটিয়া পৌরসভা শাখার সাবেক সাধারণ সম্পাদক বিশিষ্ট ব্যাবসায়ি ও সমাজ সেবক মুহাম্মদ   দিদারুল আলমের ব্যবস্হাপনায় ২৪ ডিসেম্বর বৃহস্পতিবার  সকালে  পটিয়া উপজেলার জঙ্গলখাইন ইউনিয়নের নাইখাইন গ্রামে হতদরিদ্র ৩০জন কৃষকের মাঝে ৫ কেজি করে  সার বিতরণ করা হয়েছে। এছাড়াও ৩০ জন কৃষকদের একবেলা টিফিন প্রদান করেন দিদারুল আলম।এসময় তার সাথে উপস্থিত ছিলেন পটিয়া- কর্ণফুলী মাইজভান্ডারি গাউসিয়া হক কমিটির সমন্বয়কারী মোহাম্মদ জাফরুল ইসলাম, সমন্বয়কারী সাইফুল ইসলাম সোহেল,  মানবিক পল্লী চিকিৎসক আর.কে বড়ুয়া, দৈনিক জনতা ও দৈনিক ইনফো বাংলা'র সাংবাদিক সেলিম চৌধুরী। কৃষকরা হলেন আবু ছৈয়দ বলাই, আবুল হাসেম, ফরিদুল আলম, শাহজাহান, জসিম উদ্দিন, ফারুক আহমদ,আমিনুল হক প্রমুখ।

গোপালপুরে দুই শতাধিক শীতার্তদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরন

গোপালপুরে  দুই শতাধিক শীতার্তদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরন
গোপালপুরে  দুই শতাধিক শীতার্তদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরন
ডা.এম.এ.মান্নান,টাংগাইল জেলা প্রতিনিধি:
আজ বৃহস্পতিবার,২৪ ডিসেম্বর ২০২০ খ্রি.  গোপালপুরে ভেংগুলা কলেজ মাঠে রোটারী ক্লাব বারিধারা সানরাইজ এবং ভেংগুলা খন্দকার ফজলুল হক ডিগ্রী কলেজের যৌথ উদ্যোগে দুইশতাধিক গরীব-অসহায় শীতার্তদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ করা হয়েছে। 

উপস্থিত ছিলেন ভেংগুলা কলেজর অধ্যক্ষ মোঃ ফরিদ অাহমেদ, ভেংগুলা কলেজ পরিচালনা পরিষদের সদস্য সাইম অাল মামুন, ইউপি মেম্বার এনায়েত কবীর ও  গোপালপুর কলেজ পরিচালনা পরিষদের সাবেক সদস্য মঞ্জুরুল হক ফরিদ প্রমুখ।

জয়পুরহাটে ট্রেন- বাসের সংঘর্ষে নিহত পরিবারের পাশে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী

জয়পুরহাটে ট্রেন- বাসের সংঘর্ষে নিহত পরিবারের পাশে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী
নিহত পরিবারের পাশে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী
ডা.এম.এ.মান্নান,টাংগাইল জেলা প্রতিনিধি:
গত ১৯ ডিসেম্বর জয়পুরহাট সদর উপজেলার পুরানাপুল এলাকার রেলক্রসিংয়ে এক মারাত্নক দুর্ঘটনায় চলন্ত ট্রেনের ধাক্কায় যাত্রীবাহী বাস চুর্ণবিচুর্ণ হয়ে যায়। এতে বাসের চালক ও চালকের সহকারীসহ ১২ জন লোক নিহত হন। আরেকজন মারাত্নক আহত হয়ে সংকটাপন্ন অবস্থায় বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। 

এ দুর্ঘটনায় নিহতদের  সহমর্মিতা জানানোর জন্য আমীরে জামাত ডাঃ শফিকুর রহমান টাংগাইল জেলা জামায়াতে ইসলামী আমীর জননেতা আহসান হাবীব মাসুদকে নির্দেশ দেন। সে নির্দেশ মোতাবেক টাংগাইল জেলার নেতৃবৃন্দ আজ বৃহস্পতিবার,২৪ ডিসেম্বর ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের কাছে ছুটে যায়।উপজেলা আমীর সাবেক তুখোর জনপ্রিয় ছাত্রনেতা আব্দুল্লাহ আল মামুনের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথী হিসাবে বক্তব্য রাখেন টাংগাইল জেলা নায়েবে আমির খন্দকার আব্দুর রাজ্জাক।

 নিহতর পরিবারকে সহমর্মিতা জানান এবং সান্ত্বনা প্রদান করে তাদের মাগফিরাতের জন্য মহান রাব্বুল আলামীনের দরবারে দোয়া করা হয় এবং পরিবারবর্গকে আর্থিক সহযোগিতা প্রদান করেন  জামায়াত নেত্ববৃন্দ। 

জেলা নায়েবে আমীর খ.আব্দুল রাজ্জাক  বলেন-একটি ইসলামী কল্যাণ রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার জন্য জনগণকে সাথে নিয়ে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী কাজ করে যাচ্ছে। আমরা আমাদের নৈতিক দায়বোধের জায়গা থেকে মনের টানে আপনাদের কাছে ছুটে এসেছি। আমরা আপনাদের কল্যাণের জন্য আল্লাহ্‌ সুবহানাহু ওয়া তায়ালার কাছে দোয়া করি। আপনারাও আমাদের জন্য দোয়া করবেন। বিশেষ করে জাতির প্রয়োজনে আমরা যেন সব সময় বিপন্ন মানবতার পাশে থাকতে পারি। 

উল্লেখ্য এ সময় টাংগাইল জেলা নেতৃবৃন্দসহ এবং ভুয়াপুর ও এলেংগা সাংগাঠনিক উপজেলার  জামায়াতের নেতৃবৃন্দ  উপস্হিত ছিলেন।

চট্রগ্রামের নিহত পরিবারের পাশে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী

চট্রগ্রামের নিহত পরিবারের পাশে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী


সেলিম চৌধুী স্টাফ রিপোর্টার: মাইজভাণ্ডারী গাউসিয়া হক কমিটি বাংলাদেশ,পটিয়া উপজেলার শোভনদন্ডী ইউনিয়নের  হিলিচিয়া হাতিয়ারঘোনা শাখার যুগ্ম সম্পাদক মঞ্জুরুল আলম এর পিতা ইউনুছ  মিয়া (৭০) ২৩ ডিসেম্বর রাত বুধবার রাত সাড়ে ৯টায় নগরীর একটি হাসপাতালে ইন্তেকাল করেন। ইন্না-লিল্লাহী ওয়ান্নাহ লিল্লাহি রাজিউন। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, ৪ ছেলে এক মেয়ে সহ বহু গুনগ্রাহী রেখে যান। ২৪ ডিসেম্বর বৃহস্পতিবার সকাল ১১ টায় ইউনুছ মিয়ার জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়।

 তার মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ ও শোকসপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন মাইজভান্ডারি গাউসিয়া হক কমিটির সমন্বয়কারী জাফরুল ইসলাম, মোঃ নাছির উদ্দীন, সাইফুল ইসলাম সোহেল, মোঃ দিদারুল আলম, শোভনদন্ডী ইউপি চেয়ারম্যান এহসান,  দৈনিক জনতা  ও দৈনিক ইনফো বাংলা'র সাংবাদিক সেলিম চৌধুরী,  পটিয়া উপজেলা ছাএলীগের  সাবেক সাধারন সম্পাদক আ.ন.ম সেলিম প্রমুখ।

দেশের সকল বেসরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়েকে জাতীয়করণে আলোচনা

দেশের সকল বেসরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়েকে জাতীয়করণে আলোচনা



স্টাফ রিপোর্টার:   দেশের সকল বেসরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়েকে জাতীয়করণে আলোচনা অনুষ্ঠিত। আজ ২৪ ডিসেম্বর বৃহস্পতিবার সকাল ১১ টায় দেশের সকল বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান (মাধ্যমিক )বিদ্যালয় কে একসাথে জাতীয়করণের লক্ষ্যে যশোর জেলার ঝিকরগাছা উপজেলার গঙ্গানন্দপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে উপজেলার ২১ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিদের কে নিয়ে এক আলোচনা বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

আলোচনা অনুষ্ঠানে গঙ্গানন্দপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোস্তাফিজুর রহমানের সভাপতিত্বে উক্ত অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন  মোকামতলা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আনারুল ইসলাম ,কাশিপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুস সবুর,রাজাপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শফিউল্লাহ , খুলশী বাজার মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ইতিমুদ্দৌলা, ছুটিপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক আব্দুল আলিম ,গঙ্গানন্দপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক রেজাউল হক ,আঙ্গারপাড়া বহিরামপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জাকির হোসেন, লাউজানি হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষক এস এম সেলিম রেজা, রঘুনাথ নগর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক এস এম হাসানুল বান্না,বাজার মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হাবিবুর রহমান খান , ব্যাংদাহ সম্মিলনী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক আব্দুল মজিদ, বি এম হাই স্কুলের প্রধান শিক্ষক আব্দুস সামাদ,আলাউদ্দিন বিশ্বাস মডেল একাডেমীর প্রধান শিক্ষক আতিকুল ইসলাম, অমৃতবাজার মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ফারুক হোসেন, বালিয়া- গৌরসুটি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক উত্তম কুমার। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন বি এম হাই স্কুলের প্রধান শিক্ষক আব্দুস সামাদ। অনুষ্ঠান শেষে গঙ্গানন্দপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে সকলের মাঝে খাবার বিতরণ করা হয়। অনুষ্ঠানের বিশেষ আমন্ত্রিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অত্র বিদ্যালয়ের পরিচালনা পর্ষদের সম্মানিত সভাপতি আমিনুর রহমান ,শিক্ষানুরাগী সদস্য প্রভাষক মহসীন আলী ,সদস্য বিপ্লব হোসেন, সামছুর রহমান, কামরুজ্জামান, শিউলী খাতুন প্রমুখ।

আশাশুনির দরগাহপুর ইউনিয়নের ভূমিহীন সমিতির কমিটি গঠন

আশাশুনির দরগাহপুর ইউনিয়নের ভূমিহীন সমিতির কমিটি গঠন

 
আহসান উল্লাহ বাবলু আশাশুনি সাতক্ষীরা প্রতিনিধিঃআশাশুনির দরগাহপুর ইউনিয়নের ভূমিহীন সমিতির কমিটি অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। বুধবার সকালে উপজেলার ভূমিহীন সমিতির সভাপতি এম এম সাহেব আলী, সাধারন সম্পাদক শহিদুল ইসলাম স্বাক্ষরিত সভাপতি জিন্দা সরদার, সহ সভাপতি মোবারক আলী গাজী, আল-আমিন, দলিলুদ্দীন, আব্দুর রউফ গাজী, আলী হোসেন, সাধারন সম্পাদক ছিদ্দিকুর রহমান,যুগ্ম সম্পাদক রবিউল সরদার, রফিকুল গাজী, এনামুল সরদার, সাংগঠনিক সম্পাদক মিঠুন হোসেন, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক মিলন গাজী, হাসান, শারমিন খাতুন, ইব্রাহিম গাজী, দপ্তর  সম্পাদক  হাসান, অর্থ সম্পাদক আবু সাইদ গাজী , আইন বিষয়ক সম্পাদক ডাঃ মোস্তাফিজুর রহমান, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক আজগার গাজী, সমাজ কল্যান সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান, শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক শহিদুল ইসলাম, সমবায় সম্পাদক আতিয়ার রহমান, ভূমি ও গন সংযোগ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক বাছের হোসেন, সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক  সম্পাদক উজ্জ্বল কুমার রাহা, শ্রম ও জনশক্তি সম্পাদক মোঃ আইনুস আলী সরদার, ক্রীড়া সম্পাদক মনিরুল ইসলাম, যুদ্ধাহত ও শহীদ পরিবার সম্পাদক মোশারফ মালঙ্গী, আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক আনন্দ কুমার রাহা, মহিলা বিষয়ক সম্পাদক রোজিনা খাতুন, সহ-মহিলা বিষয়ক সম্পাদক নাজমা খাতুন, সদস্য ছালাম খঁা, সাইদ সরদার, রফিকুল ইসলাম, মনি গাজী, রাসেল, নূর আলী সরদারম, আকিম সরদার, মহিবুল্লাহ মোড়ল, ছালাম মোড়ল, সাইদ গোলদার, ছবুর গোলদার সহ ১০১ সদস্য বিশিষ্ট্য আশাশুনি উপজেলার দরগাহপুর ইউনিয়ন ভূমিহীন সমিতির এ কমিটি অনুমোদন দেওয়া হয়।

আশাশুনির বুধহাটায় পাকা রাস্তার কাজ উদ্বোধন

আশাশুনির বুধহাটায় পাকা রাস্তার কাজ উদ্বোধন
আশাশুনির বুধহাটায় পাকা রাস্তার কাজ উদ্বোধন     
  

আহসান উল্লাহ বাবলু, আশাশুনি সাতক্ষীরা  প্রতিনিধিঃ  আশাশুনির বুধহাটা ইউনিয়নের বুধহাটা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পাশে পাকা রাস্তার কাজের উদ্বোধন করেন  ইউপি চেয়ারম্যান ইঞ্জিঃ আ ব ম মোসাদ্দেক।বুধবার সকালে তিনি এ রাস্তার কাজ উদ্বোধন  করেন।উদ্বোধনকালে ইউপি চেয়ারম্যান মোসাদ্দেক বলেন,নির্বাচনে জয়লাভের পর আমি প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলাম  বুধহাটা প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পাশে রাস্তা পাকা করে দিব।আজ এই রাস্তার কাজের উদ্বোধন এর সাথে সাথে প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়ন করা হল।তিনি আরও বলেন আমি কাজে বিশ্বাসী,আমার আমলে বুধহাটা ইউনিয়নে যে উন্নয়ন হয়েছে তা আগে কখনও হয় নাই।উন্নয়নের ধারাবাহিকতা অব্যহত রাখতে তিনি সকলের সহযোগিতা কামনা করেন। এসময় উপস্থিতি ছিলেন ইউপি সদস্য খোকন হাজী, রেজোয়ান আলী (রেজো) রহমতুল্লাহ হুজুর, বুধহাটা ইউনিয়ন যুবলীগ সভাপতি এজদান আলি,যুবলীগ নেতা সাদ্দাম হোসেন প্রমুখ।

সিরাজগঞ্জে রতন কান্দি ও ছোনগাছায় ঘরের শিং কেটে চুরির প্রভাব বেড়েছে

সিরাজগঞ্জে রতন কান্দি ও ছোনগাছায় ঘরের শিং কেটে চুরির প্রভাব বেড়েছে

মাসুদ রানা,সিরাজগঞ্জ,জেলাপ্রতিনিধিঃসিরাজগঞ্জ সদর উপজেলার রতন কান্দি ইউনিয়নে বাহুকাতে ঘরে শিং কেটে চুরির হিড়িক পরেছে। শিং কেটে চুরির উপদ্রুপ এলাকার সাধারণ কৃষক বিপাকে পড়েছেন। ঘটনাটি ঘটেছে বাহুকা এলাকায়।  এবিষয়ে চুরি হওয়া ঘর মালিকগন  অভিযোগ করে বলেন। অভিযোগে জানা যায়, গত (শুক্রবার) বাহুকা এলাকার  জয়নাল মন্ডলের  ছেলে আঃ হাকিম (৩৫) এর  ঘরে থাকা দুই লক্ষ পাঁচ হাজার টাকা দের ভরি গোহনা সহ ঘরে থাকা পরনের কাপর রাতে, ঘরের শিং কেটে  চুরি করে  নিয়ে যায় । এসময় বাড়ির মালিক চুরির ঘটনাটি টের পেয়ে হৈ-চৈ শুরু করেন।  স্থানীয়রা জানায়, ছোনগাছা ইউনিয়নে ডিঙ্গীপাড়া গ্রামে মৃত ছবদের আলীর ছেলে গাজীউর রহমান মঙ্গল বার তার ঘরে ও শিং কেটে ব্যাটারি চালিত অটো ভ্যান চুরি করে নিয়ে যায়। আরো পড়ুনঃ বগুড়া জুড়েই মোড়ে মোড়ে শীতের ভাপা পিঠা
গত মাসে একই এলাকার বেশ কয়টি বাড়ি এ ভাবে চুরি হয়ে যায়। চুরির বিষয়টি নিয়ে কোন প্রতিকার না হওয়ায় বাহুকা ও ডিঙ্গীপাড়া গ্রামে আতংক বিরাজ করছে। এলাকাবাসি এখন চুরির ভয়ে রাত জেগে  বাড়ি ঘর ও গরু পাহারা দিচ্ছে।এবিষয়ে রতন কান্দি  ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ আনোয়ার হোসেন জানান, চোরের খপ্পরে পরে হতদরিদ্র কৃষকের কষ্টের টাকা পয়সা ও পালিত গরু যা ঐ পরিবারের আয়ের মূল উৎস তা  হারিয়ে কৃষকরা নিঃশ্ব হয়ে জাচ্ছে।বিষয়টি সরজমিনে তদন্ত করে চুরির উপদ্রুপ থেকে রেহাই পেতে চায় এলাকাবাসি।

মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকায় মুক্তিযোদ্ধার নাম নাই!

মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকায় মুক্তিযোদ্ধার নাম নাই!

নিউজ ডেস্কঃ মুক্তিযুদ্ধের সময় মুজিবনগর সরকারের প্রধানমন্ত্রী তাজউদ্দীন আহমদের দূত হিসেবে কাজ করেছেন আবদুর রৌফ চৌধুরী। দিনাজপুরের বোচাগঞ্জ উপজেলায় বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সংগঠিত করার ক্ষেত্রেও তাঁর গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা ছিল। কিন্তু স্বাধীনতা অর্জনের ৪৯ বছর পর গত ১৯ নভেম্বর জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিলের (জামুকা) ৭০তম সভায় মহান মুক্তিযুদ্ধের এই সংগঠকের নাম বীর মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে গেজেটে অন্তর্ভুক্ত করার সুপারিশ করা হয়নি। যুক্তি হিসেবে বলা হয়েছে, তাঁর ডিজিআই নম্বর নেই, অর্থাৎ তিনি অনলাইনে বা সরাসরি জামুকার মহাপরিচালক বরাবর মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে সরকারি স্বীকৃতি চেয়ে আবেদন করেননি।


আবদুর রৌফ চৌধুরী ১৯৯৬ সালের সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে দিনাজপুর-১ আসন থেকে সাংসদ নির্বাচিত হন। পরে প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্বও পালন করেন। তিনি একটানা ১৫ বছর দিনাজপুর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ছিলেন। ২০০৭ সালের অক্টোবরে তিনি মারা যান। তাঁর একমাত্র ছেলে খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বর্তমান সরকারের নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী। পিতার নাম মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকায় রাখার সুপারিশ জামুকা করেনি জানতে পেরে খালিদ মাহমুদ চৌধুরী দুঃখ প্রকাশ করে প্রথম আলোকে বলেন, ‘এটা মুক্তিযুদ্ধ মন্ত্রণালয়ের বিষয়। আমি কী বলব?’

আক্ষেপ করে খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেন, ‘আমার বাবা সনদ বা সুবিধা পাওয়ার জন্য মুক্তিযুদ্ধ করেননি। আমরা আবেদনও করিনি। তবে এটুকু বলতে পারি, যাঁরা মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক ছিলেন, বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর তাঁদের অন্ধকারে ঠেলে দেওয়া হয়।’

বীর মুক্তিযোদ্ধা ও তাঁদের পরিবারের কল্যাণ নিশ্চিত করতে ২০০২ সালে জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিল (জামুকা) আইন করা হয়। এ আইনে বলা আছে, ‘প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকা প্রণয়ন, সনদ ও প্রত্যয়নপত্র প্রদানে এবং জাল ও ভুয়া সনদ ও প্রত্যয়নপত্র বাতিলের জন্য সরকারের কাছে সুপারিশ পাঠাবে জামুকা।’ অর্থাৎ, বীর মুক্তিযোদ্ধার তালিকায় নাম অন্তর্ভুক্ত করতে অবশ্যই জামুকার সুপারিশ নিতে হবে।
প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধাদের মধ্যে যাঁদের নাম কখনো কোনো তালিকায় আসেনি, তাঁদের অন্তর্ভুক্ত করতে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয় ২০১৪ সালে একটি উদ্যোগ নেয়। এ জন্য অনলাইনে আবেদন আহ্বান করা হয়। পরে ২০১৬ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত অনলাইনে ১ লাখ ২৩ হাজার ১৫৪টি আবেদন জমা পড়ে। এর পাশাপাশি বিভিন্ন মাধ্যমে মন্ত্রণালয়ে সরাসরি আরও ১০ হাজার ৯০০টি আবেদন আসে।


আমার বাবা সনদ বা সুবিধা পাওয়ার জন্য মুক্তিযুদ্ধ করেননি। আমরা আবেদনও করিনি। তবে এটুকু বলতে পারি, যাঁরা মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক ছিলেন, মুক্তিযুদ্ধের ক্ষেত্র তৈরি করেছিলেন, বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর তাঁদের অন্ধকারে ঠেলে দেওয়া হয়।


খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী

অনলাইনে ও সরাসরি পাঠানো আবেদন যাচাই–বাছাইয়ের কাজ শুরু হয় ২০১৭ সালের জানুয়ারিতে। তখন সারা দেশে ৪৭০টি উপজেলা, জেলা এবং মহানগর কমিটি গঠন করে মুক্তিযোদ্ধা যাচাই-বাছাইয়ের কাজটি হয়। কিন্তু যাচাই–বাছাইয়ে নানা অনিয়মের অভিযোগ ওঠায় মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকা (যাঁদের নাম আগে অন্তর্ভুক্ত হয়নি) তৈরির প্রক্রিয়া স্থগিত হয়ে যায়। পরে ২০১৮ সালের জুলাই মাসে আবার যাচাই–বাছাই শুরু হয়। এসব যাচাই–বাছাইয়ে সব মিলিয়ে প্রায় পাঁচ হাজার সুপারিশ আসে। তাদের মধ্যে দুই দফায় মোট ২ হাজার ২১২ জনের নাম মুক্তিযোদ্ধাদের গেজেটে অন্তর্ভুক্ত করার বিষয়ে জামুকা সিদ্ধান্ত নেয়। এ–সংক্রান্ত গেজেট এখনো প্রকাশ হয়নি। শুধু ৬১ জন নারী মুক্তিযোদ্ধার নামের তালিকা ১৫ ডিসেম্বর প্রকাশ (গেজেট) করেছে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়।

তথ্যের উৎসঃ প্রথম আলো   

সরকারের পাশাপাশি শীতার্ত মানুষের জন্য ‘আমরা’ সংগঠনের মত বিত্তশালীদের এগিয়ে আসা উচিৎ

সরকারের পাশাপাশি শীতার্ত মানুষের জন্য ‘আমরা’ সংগঠনের মত বিত্তশালীদের এগিয়ে আসা উচিৎ


মামুনুর রশিদ,দিনাজপুর প্রতিনিধি  ঃ দিনাজপুর শহরের ফকিরপাড়া-কালুর মোড় সংলগ্ন এলাকাবাসীর সামাজিক সংগঠন 'আমরা' সংগঠনের আয়োজনে প্রতি বছরের মত এবারো দরিদ্র-অসহায় শীতার্ত মানুষের মাঝে শীতবস্ত্র ও কম্বল উপহার হিসেবে বিতরণ করেছে।
বিশিষ্ট সমাজসেবক ও 'আমরা' সংগঠনের সভাপতি আল মামুন বিপ্লব এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখতে গিয়ে দিনাজপুরের জেলা প্রশাসক মাহমুদুল আলম বলেন, শীতার্ত মানুষদের পিছনে ফেলে রেখে দেশ ও জাতির উন্নয়ন সম্ভব নয়। শীতার্ত মানুষের পাশে দাড়ানো আমাদের নৈতিক দায়িত্ব। করোনার সময় একজন জেলা প্রশাসক হিসেবে আমি যে কাজ করেছি তা আমার দায়িত্ব থেকে করেছি। 'আমরা' সংগঠন যেভাবে শীতার্ত মানুষের পাশে এগিয়ে এসেছে তা একটি প্রশংসনীয় উদ্যোগ বলে আমি মনে করি। বিশেষ অতিথি হিসেবে দিনাজপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি স্বরূপ বকসী বাচ্চু বলেন, আর্ত মানবতার কল্যাণে 'আমরা' সংগঠন যে কাজ করে আসছে তা দেখে সমাজের বিত্তশালী ব্যক্তিরাও এগিয়ে আসবে বলে আমার বিশ্বাস। সরকারের পাশাপাশি এ ধরণের সংগঠনগুলোর শীতার্ত মানুষের পাশে দাঁড়ানো দরকার। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখতে গিয়ে দিনাজপুর পৌরসভার সাবেক প্যানেল মেয়র মোঃ আলতাফ হোসেন বলেন, প্রতি বছর এ সময় দিনাজপুরে শৈত্য প্রবাহ হওয়ার কারনে সাধারণ মানুষের জীবনযাত্রা কষ্টদায়ক হয়ে দাড়ায়। বিশেষ করে ভ্রাম্যমান ও ভব ঘুরে মানুষদের পাশে আমাদের দাড়ানো দরকার। স্বাগত বক্তব্য রাখেন, এলাকার বিশিষ্ট আইনজীবী এ্যাড. রাশেদুল ইসলাম মানিক। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন, মটর শ্রমিক ইউনিয়নের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শেখ বাদশাহ, মালিহা বুশরা প্রজ্ঞা, সামিউল ইসলাম সোয়াদ। 

নওগাঁর আত্রাইয়ে শীতার্তের মাঝে সরকারি কম্বল বিতরণ

নওগাঁর আত্রাইয়ে  শীতার্তের মাঝে সরকারি কম্বল বিতরণ

 
রাজশাহী ব্যুরোঃ নওগাঁর আত্রাইয়ে সাড়ে ৩ হাজার অসহায় শীতার্তের মাঝে সরকারি কম্বল বিতরণ করা হয়েছে। 

কয়েক দিনের বয়ে চলা শৈত প্রবাহে যখন মানুষের জীবন-যাপন বিপন্ন, সে সময় তাদের দুঃখ দুর্দশা  লাঘবে প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিল এবং দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রনালয়ের উদ্যোগে এ সকল  কম্বল বিতরণ করা হয়।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. ছানাউল ইসলাম বলেন, ইউনিয়ন চেয়ারম্যান এবং মেম্বারদের দেওয়া তালিকা যাচাই-বাছাই করে ট্যাগ অফিসার, সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন চেয়ারম্যান ও মেম্বারের উপস্থিতিতে গরিব-দুঃখি শীতার্তের মাঝে কম্বলগুলো বিতরণ করা হয়।

আশাশুনির কুল্যায় ভিজিডি কার্ডের তালিকাভুক্ত ব্যক্তিদের বাড়ি পরিদর্শনে ইউএনও

আশাশুনির কুল্যায় ভিজিডি কার্ডের তালিকাভুক্ত ব্যক্তিদের বাড়ি পরিদর্শনে ইউএনও
আশাশুনির কুল্যায় ভিজিডি কার্ডের তালিকাভুক্ত ব্যক্তিদের বাড়ি পরিদর্শনে ইউএনও


আজহারুল ইসলাম সাদী, স্টাফ রিপোর্টারঃ সাতক্ষীরা জেলার আশাশুনি উপজেলার কুল্যা ইউনিয়নের বিভিন্ন ওয়ার্ডে, ভিজিডি কার্ডের তালিকাভুক্ত হওয়া ব্যক্তিদের বাড়ি পরিদর্শন করেছেন আশাশুনি উপজেলা নির্বাহী অফিসার  মীর আলিফ রেজা। 

বুধবার (২৩ ডিসেম্বর) বিকেলে ৪ ও ৭ নম্বর ওয়ার্ডের ভিজিডি কার্ডের তালিকাভুক্ত হওয়া বিভিন্ন ব্যক্তিদের বাড়ি পরিদর্শন করেন তিনি। পরিদর্শনকালে উপজেলা নির্বাহী অফিসার তালিকা অনুযায়ী বিভিন্ন বিষয় খোঁজখবর নেন এবং পরিবারের বিভিন্ন ব্যক্তিবর্গের সাথে কথা বলেন।

এসময় মহিলা ও শিশু বিষয়ক কর্মকর্তা সাইদুর রহমান, কুল্যা ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল বাছেত আল হারুন চৌধুরী, ইউপি সদস্য রফিকুল ইসলাম পান্না, আলমগীর হোসেন আঙ্গুর, আব্দুর রশিদ, শামীমা সুলতানা কুইন, আনোয়ারা খাতুন, অফিস সহকারী আব্দুর রশিদ ও আইন শৃংখলা বাহিনীর সদস্যবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

বোয়ালখালী প্রেস ক্লাবের উদ্যোগে শীতবস্ত্র বিতরণ

বোয়ালখালী প্রেস ক্লাবের উদ্যোগে শীতবস্ত্র বিতরণ


সেলিম চৌধুরী স্টাফ রিপোর্টারঃ- চট্টগ্রামের 
বোয়ালখালী প্রেস ক্লাবের উদ্যোগে দুঃস্থদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ করা হয়েছে। শনিবার (১৯ ডিসেম্বর) সকাল ১০টায় প্রেস ক্লাব মিলনায়তনে এ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ক্লাবের সভাপতি এসএম মোদ্দাচ্ছের। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন ব্যবসায়ী মো. ওসমান। ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মো. সেকান্দর আলম বাবরের পরিচালনায় এতে বক্তব্য রাখেন, আরবী প্রভাষক মুফতি মাওলানা মুহাম্মদ তোহা হোসাইন, সাংবাদিক আবুল ফজল বাবুল, এমএস এমরান কাদেরী, ক্লাবের সহ-সভাপতি রাজু দে, সহ-সম্পাদক পূজন সেন, অর্থ সম্পাদক দেবাশীষ বড়ুয়া রাজু, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক মুহাম্মদ মহিউদ্দিন, কার্যনির্বাহী সদস্য আল সিরাজ ভান্ডারী ও আলমগীর চৌধুরী রানা মো. এনামুল হক।