ডোমারে ৪ প্রতারকের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু অপহরণ মামলা

হাবিবুর রহমান শাকিলঃ নীলফামারীর ডোমারে সমিতির আড়াঁলে কোম্পানী খুঁলে ৬ কোটি টাকা প্রতারণর ঘটনায় জড়িত ৪ প্রতারকের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু অপহরণ মামলা দায়ের করা হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে।

নীলফামারী জেলা ও দায়রা জজ আদালতে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুনাল-০১ নীলফামারীতে ৬ ডিসেম্বর বাদী মোঃ আল আমিন রহমান (৩০) এর অভিযোগের ভিক্তিতে মাননীয় বিচারক অভিযোগটি আমলে নিয়ে নীলফামারী সদর থানার অফিসার ইনচার্জকে নালিশী দরখাস্তটি নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ২০০০ সংশোধিত/০৩ এর ৭/৯(১)/৩০ ধারায় এজাহার হিসাবে গণ্য করে মামলা রজু করার নির্দেশ প্রদান করেন। মামালার বাদী মোঃ আল আমিন রহমান জানান, ডোমার বাজার ভোগ্যপণ্য সমবায় সমিতিতে আমার স্ত্রীকে চাকুরী দেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে ঐ সমিতিতে চাকুরী দিবে বলে আশ্বস্ত করলে আমার স্ত্রী মোছাঃ নাজমা বেগম (২৭) ও শিশু সন্তান নিশাদ (০৭) সমিতিতে যাওয়া আসা করতো। সেই সুযোগে প্রতারকরা আমার স্ত্রী সন্তানকে এক সাথে পেয়ে অপহরণ করে নিয়ে যায়। তিনি বলেন, উক্ত সমিতির প্রশিক্ষক ১। ফজলুর কাজী কাদের শাকিল ওরফে নুর আলম (৩৮), পিতা-মৃত জিল্লুর রহমান জিকু, সাং-কাহালু গুনিয়ারপাড়া, উপজেলা-কাহালু, জেলা-বগুড়া ২। সমিতির সভাপতি মামুন হাসান মালিক ওরফে আদম সুফি (৪৫) পিতা-মোঃ মজিবর রহমান, সাং-মধ্য চিকনমাটি, পৌরসভা- ডোমার, জেলা-নীলফামারী, ৩। সমিতির পরিচালক মাহমুদুল হাসান মামুন (২৮), পিতা-আবুল কাশেম কালু, সাং-দক্ষিণ তিতপাড়া (মেডিকেল মোড়), উপজেলা- ডিমলা, জেলা-নীলফামার, এবং ৪। সমিতির প্রশিক্ষক মোঃ মাহবুব আলম (৪৭), পিতা-অহিদুল ইসলাম, সাং-বুঝুরক্ষর হাট (পাজো পাড়া), উপজেলা-বাঘমারা, জেলা-রাজশাহী আমার স্ত্রী-সন্তানকে অপহরণ করে নিয়ে গেছে।

তিনি আরো বলেন, অনেক খোঁজাখুজির পর স্ত্রী সন্তানের খোঁজখবর না পেয়ে আমি গত ১৪ ডিসেম্বর ডোমার থানায় সাধারণ ডায়েরী করেছি যার নং ৬৭১/২০।

এরপর আমি বিভিন্ন জায়গায় সন্ধান করতে থাকাবস্থায় জানতে পারি প্রতারক চক্র দলের প্রতারকরা আমার স্ত্রী-সন্তানকে নীলফামারী পুলিশ লাইনের পিছনে বাইপাস সড়ক দিয়ে নিয়ে যাচ্ছে। সেখানে ছুটে গিয়ে দেখতে পাই উল্লেখিত আসামীরা আমার স্ত্রী সন্তানকে মাইক্রোবাস যোগে তুলে নিয়ে যাচ্ছে। অনেক চেষ্টা করেও তাদের পিছু নিয়ে স্ত্রী-সন্তানকে উদ্ধার করতে পারি নাই। আমি আইনী সহায়তার জন্য মামলা করেছি। যার মিস পিটিশন মামলা নং ১৪/২০২১। বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে, এ ঘটনায় প্রতারক চক্রের সদস্য মামলার আসামীগণ সকলেই গাঁ ঢাকা দিয়েছে।

শেয়ার করুন
পূর্ববর্তী পোষ্ট
পরবর্তী পোষ্ট