আশাশুনিতে স্কুল শিক্ষকের বিরুদ্ধে কল্পকাহিনী নারী কেলেংকারীর অভিযােগ


আহসান উল্লাহ বাবলু, আশাশুনি , সাতক্ষীরা প্রতিনিধিঃ আশাশুনি উপজলার কুল্যা ইউনিয়নের আগড়দাড়ী রহিমিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারি কম্পিউটার শিক্ষক মাছুমম্মেল হকের বিরুদ্ধে কল্পকাহিনী নারী কেলেংকারীর অভিযােগ উঠেছে। এলাকার একটি সত্যান্বেষী মহল তাদের ব্যক্তি স্বার্থ চরিতার্থ করার জন্য এক নববিবাহিতা গৃহবধুকে নিয়ে কল্প কাহিনী তৈরি করা হয়েছে বলে গ্রাম বাসী জানান।গত ২৫ ফেব্রুয়ারী রাত আনুঃ ১১ টায় বাড়ী যাওয়ার পথে সাজানাে এ ঘটনাটি ঘটে।  এ ব্যাপারে শিক্ষক বাদী হয়ে আশাশুনি থানায় ৫জনের নাম উল্লেখ করে ও ৪/৫জনকে অজ্ঞাতনামা করে একটি অভিযােগ দায়ের করেছে। জানা গেছে কুল্যা ইউনিয়নের আরার গ্রামের আবুবক্কার মালীর ছেলে কম্পিউটার শিক্ষক  মাছুমম্মেলের সাথে একই গ্রামের মৃত শাহাজুদ্দীন মালির ছেলে মাদকাসক্ত এরশাদ মালীসহ তার দলবলের পূর্ব শত্রুতা ছিলাে। প্রতি দিনের ন্যায় শিক্ষক মাছুমম্মেল বাড়ীত আসে।  সর্বশেষ গত ২৫ ফেব্রুয়ারী  রাত আনুঃ ১১টার সময় বাড়ী পৌছানাের পূর্ব মুহুর্তে  পূর্বে থেকে ওৎপেতে থাকা এরশাদ গং'রা উচস্বরে চিৎকার করে বলেন শিক্ষক মাছুমম্মেল নব দম্পত্তির গােপন অভিসার জানালার ফাঁক দিয়প উকি মেরে দেখছে। এরপর তাদের ডাক চিৎকারে আশপাশের লােকজন ছুটে এসে দেখে ঘটনাটি একটি সাজানাে কল্পকাহিনী । এলাকাবাসী বলেছে মাছুমম্মেল  দীর্ঘ ২০০২সাল হতে আগড়দাড়ী রহিমিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে সুনামের সাথে অদ্যবধি শিক্ষাকতা করে আসছে। তার বিরুদ্ধে কােন নারী কেলেংকারীর ঘটনা ঘটেনি এটা একটি ষড়যন্ত্রমূলক কল্পকাহিনী। এলাকার একটি স্বার্থান্বেষী মহল অর্থ বানিজ্যের জন্য সাজানাে এ ঘটনা ঘটিয়েছে বলে এলাকাবাসী মনে করে। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ভিক্টিমের বক্তব্য নেওয়ার চেষ্টা করা হলেও শেষ পর্যন্ত সম্ভব হয়নি।

শেয়ার করুন

প্রকাশকঃ

অফিসঃ হাজী সিরাজুল ইসলাম সুপার মার্কেট, মোহাম্মদপুর মোড়, ছুটিপুর রোড, ঝিকরগাছা, যশোর।

পূর্ববর্তী প্রকাশনা
পরবর্তী প্রকাশনা