কুলাউড়ায় দোকানপাট খুলে দেওয়ার দাবিতে স্মারকলিপি প্রদান

মোঃরেজাউল ইসলাম শাফি,কুলাউড়া উপজেলা প্রতিনিধিঃ ব্যবসায়ীদের ফের ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার হাত থেকে রক্ষা করতে ও লকডাউন প্রত্যাহার করে স্বাস্থ্য বিধির নিয়ম রেখে মৌলভীবাজারের কুলাউড়া শহরের সকল ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার দাবিতে স্মারকলিপি প্রদান করেছে ব্যবসায়ী কল্যাণ সমিতি।

বুধবার (৭এপ্রিল) দুপুরের দিকে কুলাউড়া ব্যবসায়ী কল্যাণ সমিতির নেতৃবৃন্দসহ বাজারের ব্যবসায়ীরা পৌর শহরের চৌমুহনীতে সংক্ষিপ্ত বিক্ষোভ সভা শেষে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবরে স্মারকলিপি প্রদান করেন।

সমিতির নেতৃবৃন্দ ও স্মারকলিপি থেকে জানা যায়, করোনা সংক্রমণ রোধে ২০২০ সালের মার্চ থেকে দেশে লকডাউন দেওয়া হয়। এসময় সারাদেশের ন্যায় কুলাউড়ারও সকল ব্যবসা প্রতিষ্ঠান একটানা দেড়মাস বন্ধ রাখা হয়। ওই সময় রমজান ও ঈদকে সামনে রেখে কুলাউড়া বাজারের বস্ত্র কসমেটিক্স এবং জুতার ব্যবসায়ীরা ব্যাংক ও বিভিন্ন স্থান থেকে ঋণ করে দোকানে পণ্য তুলেন। কিন্তু লকডাউনে ব্যবসায়ীরা চরম আর্থিক ক্ষতিগ্রস্থ হোন। সরকার রমজানের ঈদের আগে লকডাউন সীমিত করে স্বাস্থ্যবিধি মেনে ব্যবসা পরিচালনার নির্দেশ দিলে কয়েকদিন কুলাউড়ায় ব্যবসা করলেও লোকসান পোষাতে পারেন নি। লকডাউন ও করোনার প্রভাবে লোকসান পোষাতে ব্যবসায়ীরা এবারে রোজা ও ঈদকে লক্ষ্য করে আবারো ধার দেনা করে দোকানে পণ্য তুলেছিলেন। কিন্তু গত ৫ তারিখ থেকে দেশে ফের লকডাউন দেওয়ায় ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। কুলাউড়া বাজারের প্রায় ৫ শতাধিক বস্ত্র, হোটেল, জুতা ও কসমেটিক্সসহ বিভিন্ন দোকানপাট বন্ধ রয়েছে। কিন্তু সরকারের পক্ষ থেকে শিল্প কারখানা, নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দোকান খোলা থাকায় মানুষ ঘরের বাহিরে ঘোরাফেরা করছেন। এতে করোনার সংক্রমণ ঠেকাতে যে লকডাউন দেওয়া হয়েছে সেটা কোন কাজেই আসছেনা। উল্টো আরো ব্যবসায়ীরা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন। তাই ব্যবসায়ীদের কথা চিন্তা করে লকডাউন প্রত্যাহার করে স্বাস্থ্যবিধি নির্দেশনা দিয়ে সীমিত পরিসরে হলেও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খোলে দেওয়ার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর কাছে জানান ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দরা।

বিক্ষোভ শেষে ব্যবসায়ীদের পক্ষে কুলাউড়া ব্যবসায়ী কল্যাণ সমিতির সভাপতি বদরুজ্জামান সজল ও সম্পাদক আতিকুর রহমান আখই স্বাক্ষরিত একটি স্মারকলিপি প্রধানমন্ত্রী বরাবরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার মাধ্যেমে প্রদান করা হয়। এসময় শহরের ব্যবসায়ী ও সংগঠনের নেতৃবৃন্দরা উপস্থিত ছিলেন।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এটি এম ফরহাদ চৌধুরী জানান, আমার মাধ্যমে ব্যবসায়ী কল্যাণ সমিতির নেতারা প্রধানমন্ত্রী বরাবরে একটি স্মারকলিপি দিয়েছেন। স্মারকলিপিটি আমি উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের  নিকট পৌঁছাবো।

শেয়ার করুন
পূর্ববর্তী পোষ্ট
পরবর্তী পোষ্ট