বগুড়া ডিবির অভিযানে প্রতারক প্রেমিক আটক

বগুড়া ডিবির অভিযানে প্রতারক প্রেমিক আটক

বগুড়া ডিবির অভিযানে প্রতারক প্রেমিক আটক বগুড়া ডিবির অভিযানে প্রেমের নামে প্রতারণার মাধ্যমে অশ্লিল ছবি সংগ্রহ করিয়া সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেওয়ার মামলায় এক প্রতারক প্রেমিক গ্রেফতার হয়েছে।

বগুড়া জেলা গোয়েন্দা শাখা, বগুড়া'র পুলিশ পরিদর্শক মোঃ এমরান মাহমুদ তুহিনের নেতৃত্বে অত্র মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই মোঃ শওকত আলম এবং এসআই মোঃ আলী জাহান সঙ্গীয় ফোর্সসহ নিখুত গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে (৩০ মে) দিবাগত রাতে টাঙ্গাইল জেলাধীন বঙ্গবন্ধু সেতু পূর্ব থানাধীন রেল ষ্টেশনের মূল প্রবেশ পথের সামনে হইতে বগুড়া জেলার সদর থানার এফ আই আর নং-৭৩, তারিখ ২৭ মে, ২০২১; ধারা ২৩(১)/২৫(২)/২৯(২) ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন, ২০১৮; এর এজাহারনামীয় আসামীকে গ্রেফতার করা হয়।

আটককৃত আসামীর মোঃ সারোয়ার আরিফ ৥ আলিফ(২৫), পিতা মোঃ দেলোয়ার হোসেন, সাং কাঠাঁল বিলবোকা, থানা ত্রিশাল, জেলা ময়মনসিংহ।

আটককৃত আসামীর কাছে থেকে ০১(এক) টি সোনালী রংয়ের HUAWEI মোবাইল ফোন, যাহার মডেল নং CUN-U29; IMEI 1: 866861030670663, IMEI 2: 866861030680761, যাহার সিম নং 01718-845906 এবং সিম নং 01303-051479 পাওয়া যায়।

টিম ডিবি সূত্রে জানা যায় প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আটককৃত আসামী জানায় যে, গত বছরের মাঝামাঝি সময়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে বাদীনির সহিত তাহার পরিচয় হয়। ফেসবুক আইডিতে চ্যাটিং ও মোবাইল ফোনের মাধ্যমে যোগাযোগের এক পর্যায়ে আসামীর সাথে বাদীনির প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। সেই সূত্রে আসামী বাদীনির সহিত নাটোরে দেখা করতে এসে সেই দিনই তাহারা কুষ্টিয়াতে ঘুরতে যায় এবং ধৃত আসামী বাদীনিকে কুষ্টিয়াতে একটি আবাসিক হোটেলে এক রুমে থাকতে বাধ্য করে । এতে বাদীনি রাগারাগি করে আসামীর সহিত সম্পর্ক না রাখতে চাইলে ধৃত আসামী ভয় দেখিয়ে সম্পর্ক রাখতে বাধ্য করে। পরবর্তীতে উক্ত আসামী বাদীনিকে বিবাহের প্রলোভন দেখালে সম্পর্কটি স্থায়ী করার সিদ্ধান্ত নেয়।

বাদীনি এবং আসামীর সহিত খুলনা, সুন্দরবন, সেন্টমার্টিন, কিশোরগঞ্জ, ভৈরবসহ বিভিন্ন জায়গায় ঘুরতে যায়। সাত দিনের ট্যুরে সেন্টমার্টিন ঘুরতে গিয়ে হোটেল রুমে অবস্থানকালে ধৃত আসামী, বাদীনির অজান্তে গোপনে বাদীনির অশ্লীল ছবি ধারণ করে। বাদীনির টাঙ্গাইল জেলায় পোষ্টিং হলে ধৃত আসামী নিজে বাসা ভাড়া করে ভয় দেখিয়ে সেই বাসায় থাকতে বাধ্য করে।

ইহা ছাড়াও বাদীনির পরিবার ও আত্বীয় স্বজনদের সাথে যোগাযোগ করতে বাধা প্রদানসহ নানা রকম শারীরিক ও মানসিকভাবে নির্যাতন করতে থাকে। পরবর্তী বাদীনি ঈদের ছুটিতে বাড়ি এসে অসুস্থতার কারণে ধৃত আসামীসহ কারো সাথেই ফেসবুক ম্যাসেঞ্জারে যোগাযোগ করতে না পারলে ধৃত আসামী, বাদীনিকে সন্দেহ করে পূর্বের ধারনকৃত অশ্লীল ছবি আসামী তার ব্যবহৃত ফেক ফেসবুক আইডি হইতে ম্যাসেজের মাধ্যমে বাদীনির বন্ধু-বান্ধব, অফিস স্টাফসহ বিভিন্ন আত্বীয় স্বজনের মেসেঞ্জারে সেই ছবি ছড়িয়ে দেয় এবং বিভিন্নভাবে ভয়ভীতি প্রদর্শনসহ হুমকি দেয়।

গ্রেফতারকৃত আসামীর জব্দকৃত মোবাইলে এজাহারে উল্লেখিত ফেক ফেসবুক আইডিটি লগ-ইন অবস্থায় পাওয়া গিয়াছে এবং উক্ত ফেক ফেসবুক আইডি হতে বাদীনির অশ্লিল ছবি ম্যাসেজের মাধ্যমে বিভিন্ন ফেসবুক আইডিতে প্রেরণের তথ্য প্রমান পাওয়া যাইতেছে। ধৃত আসামীকে উপরোক্ত মামলায় বিজ্ঞ আদালতে সোপর্দ করা হইয়াছে।

বগুড়া সাইবার পুলিশ বগুড়ার পক্ষ থেকে এমরান মাহমুদ তুহিন বলেন, নারীদেরকে সোশ্যাল সাইট(ফেসবুক) ব্যবহারে আরো অনেক বেশি সতর্ক থাকতে অনুরোধ করা হচ্ছে। আজ যে আপনার বন্ধু কাল সে শত্রু হতে পারে। তাই অনলাইনে ভিডিও কলে কথা বলার সময় বিভিন্ন প্রলোভন বা প্রতিশ্রুতি দিয়ে কৌশলে আপনার একান্ত ছবি নিয়ে করতে পারে ব্লাক মেইল। এধরনের ছবি আদান প্রদান এভোয়েড করুন অনলাইন/অফলাইন এ নিরাপদ থাকুন।

 

আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে কক্সবাজারে নিহত-২

আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে কক্সবাজারে নিহত-২

নিউজ ডেস্ক: কক্সবাজারের শহরের রুমালিয়ারছড়ায় দুই পক্ষের সংঘর্ষ ও গোলাগুলির ঘটনায় দুজন নিহত হয়েছেন। আজ (৩১ ই মে)সোমবার সন্ধ্যা ছয়টার দিকে সিকদার বাজার এলাকায় এ ঘটনা ঘটে বলে জানা যায়।
দুই গ্রুপের, আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে স্থানীয় রায়হান ও সাদ্দাম বাহিনীর লোকজনের মধ্যে এ গোলাগুলি হয়েছে বলে পুলিশ জানায়। নিহতরা হলেন রায়হান বাহিনীর প্রধান মো. রায়হান (২৪) ও শহরের টেকপাড়ার বাসিন্দা শাহেদুল হক (২২)। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে।

কক্সবাজার শহর পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক আনোয়ার হোসেন বলেন,  সংঘর্ষে গুলিতে দুই বাহিনীর মধ্যে দুইজন নিহত হয়েছেন। সন্ত্রাসীদের ধরতে অভিযান চলছে বলেও তিনি জানান। ময়নাতদন্তের জন্য দুজনের মরদেহ কক্সবাজার সদর হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে।


পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শী ব্যক্তিরা জানান, আজ সন্ধ্যায় রায়হান বাহিনীর ১৫-২০ জন সন্ত্রাসী সিকদার বাজারে পৌঁছালে সাদ্দাম বাহিনীর ২০-২৫ জন তাঁদের প্রতিরোধ করে এবং এলাকা ছেড়ে যেতে বলেন। এ নিয়ে প্রথমে কথা-কাটাকাটির একপর্যায়ে দুই পক্ষে সংঘর্ষ ও গোলাগুলি শুরু হয়। এ সময় দোকানপাট বন্ধ করে ব্যবসায়ীরা এদিক-ওদিক পালাতে থাকেন। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। গুলিতে সাদ্দাম বাহিনীর সহযোগী শাহেদুল হক ঘটনাস্থলে নিহত হন। তিনি শহরের টেকপাড়া জামে মসজিদ সড়কের বাসিন্দা মুজিবুল হকের ছেলে। রায়হান গ্রুপের প্রধান মো. রায়হানকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় কক্সবাজার সদর হাসপাতালে নেওয়ার পথে মারা যান। রায়হান বাচামিয়ার ঘোনা এলাকার নুরুল আলমের ছেলে।
নিহত রায়হান ২০১৮ সালে বাচামিয়ার ঘোনা এলাকায় গুলিতে নিহত কালেজছাত্র তানভীর হত্যা মামলার পলাতক আসামি বলে স্থানীয় পুলিশ জানায়। শাহেদুলের বিরুদ্ধেও থানায় একাধিক মামলা রয়েছে। দীর্ঘদিন ধরে ওই আলাকায় আধিপত্য বিস্তার, চাঁদাবাজি, খাসজমি বিক্রি ও পাহাড়ের জায়গা দখল–বেদখল নিয়ে দুই সন্ত্রাসী বাহিনীর মধ্যে দ্বন্দ্ব চলে আসছে।


আর্জেন্টিনার পরিবর্তে ব্রাজিলে হবে কোপা আমেরিকা ফুটবল টুর্নামেন্ট

আর্জেন্টিনার পরিবর্তে ব্রাজিলে হবে কোপা আমেরিকা ফুটবল টুর্নামেন্ট

ক্রীড়া ডেস্ক: কোপা আমেরিকা ফুটবল টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল আর্জেন্টিনায়। কিন্তু করোনাভাইরাসের কারণে আজ সকালেই ঘোষণা করা হয়, আর্জেন্টিনায় টুর্নামেন্টটি হচ্ছে না। এর মাধ্যমে অনিশ্চয়তায় পড়ে গিয়েছিল লাতিন অঞ্চলের সবচেয়ে বড় ফুটবল প্রতিযোগিতা। ২৪ ঘণ্টা পার হওয়ার আগেই কোপা আমেরিকার নতুন আয়োজক দেশের নাম ঘোষণা করেছে কনমেবল। এবার টুর্নামেন্টটি আয়োজন করবে ব্রাজিল।

টুইট করে বিষয়টি নিশ্চিত করেছে কনমেবল, 'কনমেবল কোপা আমেরিকা ২০২১ অনুষ্ঠিত হবে ব্রাজিলে।' আগের সূচি অনুযায়ী ১৩ জুন শুরু হয়ে ১০ জুলাই অনুষ্ঠিত হবে টুর্নামেন্টের ফাইনাল। এর আগে সর্বশেষ ২০১৯ সালে কোপা আমেরিকা আয়োজন করেছিল পাঁচবারের বিশ্বকাপজয়ী দেশটি।

মূলত টুর্নামেন্টটি অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল গত বছর। কিন্তু করোনা মহামারি রূপ নেওয়ায় স্থগিত করা হয় টুর্নামেন্টটি। পিছিয়ে এ বছরের জুনে নিয়ে আসা হয়। প্রথমে এটি আর্জেন্টিনা ও কলম্বিয়ার যৌথ আয়োজনের কথা ছিল। কিন্তু ২০ মে কলম্বিয়াকে তাদের দেশের অভ্যন্তরীণ রাজনৈতিক অস্থিরতার কারণে আয়োজক থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে। কলম্বিয়ায় হতে যাওয়া ১৫টি ম্যাচও তখন আর্জেন্টিনায় আয়োজনের ব্যাপারে আলোচনা চলছিল।

করোনা নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যাওয়ায় আর্জেন্টিনা থেকে টুর্নামেন্ট সরিয়ে নিয়েছে কনমেবল। নতুন ভেন্যু হিসেবে ব্রাজিলকে বেছে নিয়েছে তারা। মজার ব্যাপার, করোনায় বিশ্বে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত দেশগুলোর মধ্যে দুইয়ে আছে ব্রাজিল। এখন পর্যন্ত ৪ লাখ ৬২ হাজার মানুষ মৃত্যুবরণ করেছেন দেশটিতে। গতকালও ৪৩ হাজারের বেশি মানুষ নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন, মৃত্যুবরণ করেছেন ৯৫০ জন। ওদিকে আর্জেন্টিনায় গতকাল ৩৪৮ জনের মৃত্যু হয়েছে, আক্রান্ত হয়েছেন ২১ হাজার ৩৪৬ জন।

চিরিরবন্দরে জাতীয় গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের উদ্বোধন

চিরিরবন্দরে জাতীয় গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের উদ্বোধন


মো. মিজানুর রহমান মিজান, চিরিরবন্দর (দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃ দিনাজপুরের চিরিরবন্দর উপজেলায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান অনুর্ধ্য- ১৭ জাতীয় গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের উপজেলা পর্যায়ের খেলা উদ্বোধন করা হয়েছে।

গত ৩০ মে রোববার  দুপুর দেড়টায় উপজেলা প্রশাসন ও উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার আয়োজনে সূখীপীর মাঠে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান জাতীয় গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের উপজেলা পর্যায়ের খেলায় প্রধান অতিথি হিসেবে ভার্চুয়ালি উদ্বোধন ও বক্তব্য রাখেন অর্থ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী এমপি। 

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আয়েশা সিদ্দীকার সভাপতিত্বে অতিথি হিসেবে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ মো. আহসানুল হক মুকুল, থানার কর্মকর্তা ইনচার্জ সুব্রত কুমার সরকার, পুনট্টি ইউপি চেয়ারম্যান নুর এ কামাল, উপজেলা স্কাউটস সম্পাদক লুৎফর রহমান ও স্বাগত বক্তব্য রাখেন উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক মোরশেদ উল আলম। এ সময় ক্রীড়া সংস্থার সকল সদস্য, সরকারি কর্মকর্তা, ইউপি চেয়ারম্যান বৃন্দ, ইউপি সদস্য বৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। উদ্বোধনী দিনে ১০ টি ইউনিয়নের খেলা অনুষ্ঠিত হয়। আগামীকাল ফাইনাল খেলবে আইডিয়াল ফুটবল ক্লাব রাণীরবন্দর ৷

জয়পুরহাট করোনায় আক্রান্ত ১ জনের মৃত্যু, আক্রান্ত- ২৭

জয়পুরহাট করোনায় আক্রান্ত ১ জনের মৃত্যু, আক্রান্ত- ২৭

জামিরুল ইসলাম জয়পুরহাট জেলা প্রতিনিধি :জয়পুরহাটের ক্ষেতলাল উপজেলার  সোহলি নওদা পাড়া গ্রামে করোনায় আক্রান্ত হয়ে  আব্দুর রাজ্জাক আকন্দ নামে এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন জেলা সিভিল সার্জন ডাঃ ওয়াজেদ আলী।

আজ রবিবার   জয়পুরহাটে করোনা নমুনার ৮৫ টি রিপোর্ট এসেছে।   এর মধ্যে ২৭ জনের  করোনা শনাক্ত হয়েছে। গত একসপ্তাহে জেলায় ১০৩ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে।

নানা আয়োজনে বগুড়া থিয়েটারের ৪১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন

নানা আয়োজনে বগুড়া থিয়েটারের ৪১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন

বগুড়া প্রতিনিধিঃ মোঃ সবুজ মিয়া: বগুড়া থিয়েটার আজ নট নন্দনের নন্দিত নাট্যালয়। শত বাঁধা-বিপত্তি, চড়াই-উৎরাই পেরিয়ে বাংলাদেশের প্রথম সারির নাট্য সংগঠন বগুড়া থিয়েটার শুধু নাট্য আন্দোলনেই না, যেকোন দুর্যোগ, সামাজিক- রাজনৈতিক সংকটে যেনো আলো দেখিয়ে দেয়া সংগঠন। 

নাট্যাচার্য সেলিম আল দীন ও নাসির উদ্দিন ইউসুফ বাচ্চুর গড়া গ্রাম থিয়েটারের অন্যতম সংগঠন ও বাংলাদেশ গ্রুপ থিয়েটারের অন্যতম নাট্যদল বগুড়া থিয়েটার তাদের নিজস্ব আঙিনায় সেলিম আল দীন মঞ্চে উদযাপন করলো প্রত্যয়ের ৪১ জয়ন্তী। বগুড়া থিয়েটার যাত্রা শুরু করেছিলো ১৯৮০ সালের ২৯ মে পাপ পূণ্য নাটকের মাধ্যমে। 

প্রত্যয়ের ৪১ জয়ন্তী উপলক্ষে ২ দিন ব্যাপী অনুষ্ঠানে বিকেলে থিয়েটারের অগ্রজ, অনুজ আর বগুড়ার বিশিষ্ট সাংস্কৃতিকজন দের উপস্থিতিতে করোনার কারণে দীর্ঘদিন স্থবির হয়ে পরা কার্যালয় যেনো প্রাণের হিল্লোলে মেতেছিল।

প্রদীপ প্রজ্জ্বালন করে, আগুনের পরশমণি ছোঁয়াও প্রাণে গানের মাধ্যমে বর্তমান পৃথিবীর অন্ধকার থেকে আলোর পথে নিয়ে যাবার আকুতি জানান নাট্যজনরা। প্রদীপ প্রজ্জ্বালন করেন প্রধান অতিথি লায়ন মোজাম্মেল হক লালু। 

৪১ তম আয়োজনে বগুড়া থিয়েটারের পক্ষ হতে খন্দকার গোলাম কাদের ও এ,এইচ আজম খান পদক প্রদান করা হয় পুন্ড্রজনপদের নন্দিতজন, দৈনিক করতোয়ার সম্পাদক মোজাম্মেল হক লালু ও ডঃ এনামুল হক কে।

এছাড়াও, বীর মুক্তিযোদ্ধা কৃষিবিদ বজলুর রাশিদ রাজাকে  সভাপতি ও তৌফিক হাসান ময়না কে সাধারণ সম্পাদক সহ নব গঠিত ২৭ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি কে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান প্রধান অতিথি লায়ন মোজাম্মেল হক লালু। কমিটির অন্যান সদস্যবৃন্দ হলেন সিনিয়র সহ সভাপতি প্রদীপ ভট্টাচার্য শঙ্কর, সহ সভাপতি এড. পলাশ খন্দকার,  দ্বীন মোহাম্মদ দীনু, খন্দকার এনামুল হক, যুগ্ম সম্পাদক ফারুক হোসেন,  সাংগাঠনিক সম্পাদক কবির রহমান, অর্থ সম্পাদক জাকিউল ইসলাম সবুজ, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক গোলাম মোস্তফা জিয়ন, দপ্তর সম্পাদক কনক কুমার পাল অলক। 

নির্বাহী সদস্যবৃন্দ হলেন শহীদুর রহমান, আব্দুল খালেক, পাঁপড়ি ইসলাম, ফরহাদ হোসেন, রুবল লোদী, শাহাদাৎ হোসেন, আবু সাঈদ সিদ্দিকী,  বিধান কৃষ্ণ রায়, আমজাদ শোভন, সুপিন বর্মন, রেহেনা আমিন শিল্পী, সবুজ চন্দ্র বর্মন, তাসলিমা বেগম, সর্দার হামিদ, ওসমান গণি, সোবহানি বাপ্পী।

এরপর, শুরু হয় প্রতিষ্ঠা জয়ন্তীর মূল অনুষ্ঠান। 

বগুড়া থিয়েটারের নন্দিত প্রযোজনা নাটক সোনাভানের পালা, কৈবর্ত বিদ্রোহ, দ্রোহ,  ফকির মজনু শাহ নাটকে ব্যবহৃত গান ও জারিগান পরিবেশন করেন বগুড়া থিয়েটারের নজরুল ইসলামের নেতৃত্বে নাট্যকর্মী বৃন্দ।

এছাড়াও, বগুড়া থিয়েটারের উল্লেখযোগ্য প্রযোজনা নাটক নূরল দীনের সারাজীবন,  কথা পূন্ড্রবর্ধন,  একটি কিশোর মুক্তিযোদ্ধা ও সংগঠনের প্রথম নাটক পাপ পূণ্যের অংশবিশেষ অভিনয় করে দেখান নাটকের নন্দিত কলাকুশলীবৃন্দ।

দীর্ঘদিন পর অংশবিশেষ অভিনয়ের জন্য মঞ্চে ওঠেন বগুড়া থিয়েটারের দ্বীন মোহাম্মদ দীনু, জাকিউল ইসলাম সবুজ, রুবল লোদীর মত দেশ বরেণ্য মঞ্চশিল্পীরা।

তৌফিক হাসান ময়না ও প্রদীপ ভট্টাচার্য শঙ্কর যখন মঞ্চে অভিনয় করছিলেন দর্শকদের  মধ্যে অসাধারণ এক মিথোস্ক্রিয়ার সৃষ্টি হয়। কেননা নতুন প্রজন্মের কেউই তাদের অভিনয় দেখেন নি।

শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন বৃহত্তর বগুড়া সমিতির সাধারণ সম্পাদক কামরুল ইসলাম, বাংলাদেশ গ্রাম থিয়েটারের আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক আব্দুল হান্নান, নান্দনিক নাট্যদলের সাধারণ সম্পাদক খলিলুর রহমান চৌধুরী, নাট্যদলের সভাপতি মির্জা আহসানুল হক দুলাল, সংশপ্তক থিয়েটারের সাধারণ সম্পাদক সাদেকুর রহমান সুজন, বগুড়া থিয়েটারের অগ্রজ নাট্যজন, সাংবাদিক চপল সাহা প্রমুখ। 

এছাড়াও, ননবগঠিত কমিটির সদস্যদের ফুল দিয়ে অভিনন্দন জানান লেখক চক্রের সভাপতি ইসলাম রফিক, আমরা ক'জন শিল্পী গোষ্ঠীর সভাপতি আব্দুল মোবিন জিন্নাহ, শব্দ কথনের সাধারণ সম্পাদক এইচ আলিম, ধৈবত সাংস্কৃতিক একাডেমির ডাঃ মিল্লাত হোসেন।

তাছাড়া, ভার্চুয়ালি বগুড়া থিয়েটারের প্রতিষ্ঠা জয়ন্তী উপলক্ষে শুভেচ্ছা জানান বাংলাদেশ সরকারের সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে,এম,খালিদ, বাংলাদেশ গ্রাম থিয়েটারের সভাপতি নাসির উদ্দিন ইউসুফ বাচ্চু, বাংলাদেশ গ্রুপ থিয়েটার ফেডারেশনের সেক্রেটারি জেনারেল কামাল বায়েজিদ, পশ্চিম বঙ্গের নাট্য গবেষক আশিষ গোস্বামী সহ এপাড়-ওপাড় বাংলার অগণিত নাট্য সংগঠক।

সমস্ত অনুষ্ঠান টি প্রাঞ্জলভাবে উপস্থাপন করেন দপ্তর সম্পাদক কনক কুমার পাল অলক। 

করোনার কারণে সীমিত আয়োজনে হলেও উদযাপনের আড়ম্বরে কোন কমতি ছিল না। মিলন মেলার এ আয়োজনে গান, কবিতা, কথায়,  শুভেচ্ছায় রাত গড়ায় অনেকটা। অবশেষে আগামী দিনে নাট্যমঞ্চে আরো শানিত প্রযোজনা উপহার দেবার প্রত্যয় ব্যক্ত করে ও যেকোন দায়বদ্ধতায় মানুষের পাশে দাঁড়াবার শপথ নিয়ে শেষ হয় প্রথম দিনের উদযাপন।

প্রতিষ্ঠা জয়ন্তী উপলক্ষে সকালে বগুড়া থিয়েটারের নাট্যকর্মীরা সাতমাথায় করোনা সচেতনতা সৃষ্টির জন্য মাস্ক বিতরণ করেন।আজ দুই দিন ব্যাপী আয়োজনের দ্বিতীয় দিনে বগুড়া থিয়েটার কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হবে থিয়েটার আড্ডা।

”মা” চলে গেল কাজী রকিবুল ইসলাম

”মা” চলে গেল কাজী রকিবুল ইসলাম

দশের চক্রে ভগবান নাকি হয় ভুত 
তিন ডাইনির চক্রান্তে বৌমা হারলো পুত !
সৃষ্টিকর্তা নাকি সব দেখে
তার প্রতিনিধিরা নাকি সব লিখে।

আসলে কি তাই ?
অভিযোগ দিতে অল্লাহ্র ঘর মসজিদে যাই
কখনো কখনো অভিযুক্তের শাস্তি দেখতে পাই ।
কখনো কখনো কিছুই নাই ?

বাবার সন্তানের মা হতে চেয়েছিল
স্বপ্নের সোনার সংসার করতে চেয়েছিল ।
কুচক্রীদের চক্রান্তে মুহুর্তের মধ্যে ভেঙ্গে চুরমার
মায়ের সোনার সংসার ।

রাজকন্যা থেকে ভিখারি হয়ে গেল
বিচারকরা প্রহসনের বিচার করল
"মা" যে নির্যাতিত হলো,সম্মান হারাল !
তার বিচার চেয়েও পেল না ?
খুব-দুঃখে মলিন মুখে "মা" চলে গেল।

কিছু ভিখারি বাচ্চা ভিখারির মতো
মায়ের হাতে কয়েকটা কাপড় দিয়ে দিল !
দুই হাতে ধরে তাই নিয়ে চলে গেল,
মনে হল পায়ের দিকে তাকিয়ে
পদাঘাত করতে করতে "মা" চলে গেল ।
মনের গভীরে চলে যাওয়া ভিডিও রয়ে গেল।

কিশোরগঞ্জে রাস্তার মেরামতের কাজ শেষ না হতেই কার্পেটিং উঠে গেছে, প্রতিবাদকারী আটক

কিশোরগঞ্জে রাস্তার মেরামতের কাজ শেষ না হতেই কার্পেটিং উঠে গেছে, প্রতিবাদকারী আটক

মোঃ লাতিফুল আজম,নীলফামারী প্রতিনিধি: নীলফামারীর কিশোরগঞ্জে উপজেলার নিতাই ডাঙ্গাপাড়া থেকে ইউনিয়ন পরিষদ পর্যন্ত এলজিইডির ৫ কিলোমিটার রাস্তার মেরামতের কাজ হতে না হতেই কাপর্টিং উঠে গেছে। রোববার সন্ধ্যায় ডাঙ্গাপাড়ার ৮ থেকে ১০  জায়গায় কার্পেটিং উঠে যাওয়ায় এলাকাবাসীর মধ্যে তোলপাড় শুরু হয়। এসময় নিম্নমানের কাজ করার প্রতিবাদ করায় ওই গ্রামের মাদরাসা ছাত্র বিশ্বাস (১৮) কে তদারকি কর্মকর্তা পুলিশের হাতে তুল দেন। আটককৃত বিশ্বাস ওই এলাকার এমদাদুল হকের  পুত্র।

জানা যায়, নিতাই ডাঙ্গাপাড়া থেকে নিতাই ইউনিয়ন পরিষদ পর্যন্ত ৫ কিলোমিটার রাস্তার মেরামত কাজের জন্য বরাদ্দ দেয়া হয় ১ কোটি ৪৯ লাখ টাকা। টেন্ডারের মাধ্যমে কার্যাদেশ পায় ঢাকার ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান সুনাম এন্টারপ্রাইজ। গত ২৪মে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানটি ৫ কিলোমিটার রাস্তার মধ্যে দেড় কিলোমিটার রাস্তার কাজ শেষ করে। অবশিষ্ট কাজ বৃষ্টির কারনে বন্ধ রয়েছে বলে এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, এক সপ্তাহের মধ্যে নিতাই ডাংগাপাড়া রাস্তাটির কাজের ৮ থেকে ১০ জায়গায় কার্পেটিং উঠে যায়। এঘটনায় এলাকাবাসীর মধ্যে নিম্নমানের কাজের বিষয় তোলপাড় শুরু হলে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান সুনাম এন্টারপ্রাইজের কাছ থেকে সাব- কন্ট্রাক্টের মাধ্যম কাজ নেয়া মোশাররফ হোসেন  ও তদারকি কর্মকর্তা সাজেদুর রহমান নিজেদের দুর্নীতির দায় এড়াতে রোববার ৩০মে সন্ধ্যায় বিশ্বাসকে পুলিশের হাতে তুলে দেয়। পরের দিন পুলিশ তাকে ১৫৪ ধারায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে নীলফামারী জেল হাজতে পাঠায়। 
এলাকাবাসী হেলাল সরকার সাংবাদিকদের অভিযোগ করে বলেন, ঠিকাদার ও তদারকি কর্মকর্তা নিম্নমানের কাজ করায় এঘটনা ঘটেছে। 

এলাকার আব্দুল বারিক ও তরিকুল ইসলাম বলেন, নিম্নমানের কাজ করার সময় এলাকাবাসী অনেক প্রতিবাদ করেছিল  ঠিকাদার মোশাররফ হোসেন ক্ষমতাসীন দলের লোক বলে আমাদের অভিযোগ পাত্তা দেয়নি। রাস্তা মেরামতের কাজে নিম্নমানের বিটুমিন ব্যবহার করা হয়েছে। ওই ঠিকাদার রাস্তার কাজের সব উপকরণ ছিল নিম্নমানের।
এ বিষয়ে ঠিকাদার মোশাররফ হোসেনের  সাথে কথা হলে তিনি বলেন, এলাকার কয়েকজন ছেলে চাঁদা চেয়েছিল তা না দেয়ায় তারা রাস্তার কাপর্টিং উঠে ফেলেছে।তদারকি কর্মকর্তা সাব-অ্যাসিস্ট্যান্ট ইঞ্জিনিয়ার সাজেদুর রহমান নিম্নমানের উপকরণ দিয়ে কাজ করার কথা অস্বীকার করে বলেন এলাকার কয়েকজন বখাটে ছেলে রাস্তার কাজের টাকা না পেয়ে কাপর্টিং তুলে ফেলেছে।

অতিরিক্ত দায়িত্বপ্রাপ্ত উপজেলা প্রকৌশলী আব্দুর রউফ এর  অফিসে দেখা না পেয়ে তার মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করা হলেও তিনি মুঠোফোন তুলেন নি।গ্রেপ্তারের বিষয় জানতে চাইলে কিশোরগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুল আউয়াল বলেন, বিশ্বাসকে ১৫৪ ধারা মামলায় জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

ধর্ষণের অভিযোগে জবির সাবেক ছাত্রলীগ নেতা আটক

ধর্ষণের অভিযোগে জবির সাবেক ছাত্রলীগ নেতা আটক

জবি প্রতিনিধি: জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) সাবেক এক ছাত্রলীগের নেতার বিরুদ্ধে মাদারীপুরের শিবচরে নবম (৯ম) শ্রেণির এক মাদ্রাসাছাত্রীকে প্রেমের ফাঁদে ফেলে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। অভিযুক্ত মোস্তাফিজুর রহমান মুন্সী নাসির জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শাখা ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সম্পাদক ও মাদারীপুর ছাত্রকল্যাণ পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক। ছাত্রত্ব হারানো বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিন্যান্স বিভাগের শিক্ষার্থী নাসির জবি ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদের অনুসারী ছিলেন।

ঘটনাসূত্রে জানা যায়, ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে প্রচারণায় নামে সাবেক ছাত্রলীগ নেতা মোস্তাফিজুর রহমান নাসির। দেড় মাস আগে মাদারীপুরের শিবচর উপজেলার বাঁশকান্দি ইউপি নির্বাচনে প্রচারণার সময় নাসিরের সঙ্গে ঐ শিক্ষার্থীর পরিচয়, এরপর প্রেম। বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে এ মাসের ২১ তারিখে এক বন্ধুর বাড়িতে নিয়ে নাসির মেয়েটিকে ধর্ষণ করে বলে অভিযোগ স্বজনদের। পরিবারের লোকজন মেয়েটিকে উদ্ধার করে ডাক্তারি পরিক্ষার জন্য সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন।

স্বজনরা জানান, "এর বিচার যদি আপনারা না করেন তাহলে আমার এলাকায় নাসির আরও খারাপ কাজ করবে। আমরা তার বিচার চাই।"এলাকার মাতবরের কাছে অভিযোগ দিয়ে কোনো বিচার পাননি নির্যাতিতার পরিবার। পরে বাধ্য হয়ে আদালতের দারস্থ হন তাঁরা। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে নির্যাতিতার বাবাকে শহরের একটি আবাসিক হোটেলে ডেকে নাসির মারধর করে। স্থানীয়রা বিষয়টি টের পেয়ে থানায় খবর দিলে পুলিশ নাসিরকে আটক করে।

জবিস্থ মাদারীপুর জেলা ছাত্রকল্যাণ পরিষদের একাধিক নেতার সাথে কথা বলে জানা যায়, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সর্বশেষ সম্মেলনের পর তাকে ক্যাম্পাসে দেখা যায় নি। তবে সে এর আগে ছাত্রলীগে সক্রিয় ছিলেন। সে এলাকায় চেয়ারম্যান পদপ্রার্থীও ছিলেন বলে জানান তারা।এ বিষয়ে জানতে চাইলে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদ বলেন, "হ্যাঁ, নাসির আমার কর্মী ছিলো, তবে এখন নেই।"তিনি আরো বলেন, "কোনো কর্মী যদি কোনো অপকর্ম করে তাহলে এর দায় ছাত্রলীগ নিবে না।"

আসাদ বলেন, তার তিন-চার বছর আগেই ছাত্রত্ব শেষ। আর ছাত্রলীগের নাম দিয়ে কেউ কোনো অন্যায় করলে সে তো ছাত্রলীগের ভালো চায় না। সে যদি অন্যায় করে থাকে তাহলে সে শাস্তির যোগ্য। আর তার তো ছাত্রত্বই নাই,এখন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাই-ব্রাদার হিসেবে কথা হতেই পারে। আর তার ছাত্রত্ব যাওয়ার পর তার এলাকার নির্বাচনী প্রচারণার কাজ করে।

এ বিষয়ে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. মোস্তফা কামাল বলেন, "সে আসলে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র না। ভর্তি হওয়ার পর ঝড়ে পড়েছিল। সে তার অনার্স কমপ্লিট করতে পারেনি। এর আগেও ক্যাম্পাসের ছাত্র না হওয়া সত্বেও ক্যাম্পাসে একটা ঘটনার জন্য তার মোটরসাইকেল আটকে রাখা হয়েছিল। পরবর্তীতে মুচলেকা দিয়ে সে সেটি নিয়ে যায়। তাকে সতর্ক করে দেওয়া হয় যাতে সে আর ক্যাম্পাসে না আসতে পারে।"

তদন্ত করে অভিযুক্তের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দেয় পুলিশ। শিবচর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ মিরাজ হোসেন মুঠোফোনে বলেন, যেহেতু ছেলেটাকে পাবলিকে আটকাইছে এবং পুলিশের কাছে হ্যান্ডওভার করছে, ওকে নিয়ে এসে আমরা নিয়মিত মামলা নিয়ে নিবো। মেয়েটির বাবার লিখিত এজাহারের পরিপ্রেক্ষিতে তার বিরুদ্ধে নিয়মিত মামলা হয়েছে সে এখন পুলিশি হেফাজতে আছে।এ ঘটনায় জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থী সহ সকলেই সুষ্ঠু তদন্ত এবং কঠিন শাস্তির দাবি করেছেন।

শীঘ্রই শুভ উদ্বোধন হতে যাচ্ছে আপন এক্সপ্রেস কুরিয়ার এ্যান্ড পার্সেল সার্ভিস লিঃ

শীঘ্রই শুভ উদ্বোধন হতে যাচ্ছে আপন এক্সপ্রেস কুরিয়ার এ্যান্ড পার্সেল সার্ভিস লিঃ

খাদেমুল ইসলাম রাজ ,বীরগঞ্জ উপজেলা প্রতিনিধিঃ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সু-যোগ্য কন্যা উন্নয়নের কান্ডারী জননেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন চাকুরী নয় আপনারা নিজেরাই উদ্যোক্তা হোন তারই ধারাবাহিকায় সাহেজাদা নুরে আফসা নিজ উদ্যোগে এই কুরিয়ার সার্ভিস করার সিদ্ধান্ত নেন। কুরিয়ার সার্ভিস গ্রাহকদের সার্বিক সুবিধা নিশ্চিত করতে দেশে সংযোগ হতে চলেছে আরো একটি কুরিয়ার সার্ভিস।

দিনাজপুরের কৃতি সন্তান বিশিষ্ট ধান চাল ব্যবসায়ী মরহুম আব্দুল খালেক এর ২য় পুত্র মোঃ সাহেজাদা নুরে আফসা নিজ উদ্যোগে গ্রাহকদের নানা প্রকার প্রতারনার হাত থেকে মুক্তি দিতে শীঘ্রই শুভ উদ্বোধন করতে যাচ্ছেন আপন এক্সপ্রেস কুরিয়ার এ্যান্ড পার্সেল সার্ভিস লিঃ। সততা ও নিষ্ঠার সাথে ব্যবসা পরিচালনা করার লক্ষ্যে কুরিয়ার সার্ভিসটি এখন শুধু উদ্বোধনের অপেক্ষায়। এই কুরিয়ার সার্ভিস পরিচালনার দায়িত্বে রয়েছেন, চেয়ারম্যান সাহেজাদা নুরে আফসা, ম্যানেজিং ডায়রেক্টর মোঃ মোস্তফা, ডায়রেক্টর নিয়াজ আহমেদ, ডায়রেক্টর খালিদ হোসেন আসলাম।

এব্যাপারে সাহেজাদা নুরে আফসার সাথে মুঠোফোনে কথা হলে তিনি জানান, আমরা সততা ও নিষ্ঠার সাথে গ্রাহকদের শতভাগ নিশ্চিত ভাবে পার্সেল পাঠানোর চেষ্টায় দেশব্যাপী একটি কুরিয়ার সার্ভিস চালু করার উদ্যোগ গ্রহন করেছি। আমাদের এই কুরিয়ার সার্ভিস চালু হলে দেশের প্রায় ৫০ হাজার বেকার শিক্ষিত যুবকের কর্মস্থান নিশ্চিত করা হবে। দেশব্যাপী এই কুরিয়ার সার্ভিস পরিচালনার লক্ষ্যে আমরা চলতি বছরের জুন মাসের মধ্যেই কুরিয়ার সার্ভিসের প্রধান কার্যালয় রোড- ৩ হাউস-১৪ ব্লক, এ ঢাকা উদ্দান মোহাম্মদপুর ঢাকা উদ্বোধনসহ সারাদেশে এজেন্ট ও চাকুরী আগ্রহী প্রার্থীদের জন্য নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হবে। সেখানে চাকুরী প্রার্থীরা অনলাইন ও অফলাইনে আবেদন করতে পারবেন।

ভোলার দৌলতখানে কাব ও স্কাউটস সদস্যদের আর্থিক সহায়তা

ভোলার দৌলতখানে কাব ও স্কাউটস সদস্যদের আর্থিক সহায়তা
ভোলার দৌলতখানে কাব ও স্কাউটস সদস্যদের আর্থিক সহায়তা প্রদান

মোঃ রিয়াদ,দৌলতখান   প্রতিনিধিঃ ভোলার দৌলতখানে কোভিড-১৯ এর কারণে (৩০ জন)  কাব ও স্কাউটস সদস্যদের মাঝে আর্থিক সহায়তা প্রদান করেন ভোলা জেলা প্রশাসক তৌফিক-ই-লাহী চৌধুরী। 

আজ ৩১ মে (সোমবার) সকাল ১১ টায় উপজেলা প্রশাসন এর সম্মেলন কক্ষে এ বিতরন অনুষ্ঠিত হয়।বাংলাদেশ স্কাউটস দৌলতখান উপজেলা শাখার ব্যবস্থাপনায়  দৌলতখান উপজেলা নির্বাহী অফিসার  মোহাম্মদ তারেক হাওলাদার এর সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন, দৌলতখান উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মনজুর আলম খান, দৌলতখান পৌরসভার মেয়র জাকির হোসেন তালুকদার, মহুয়া আফরোজ সহকারী কমিশনার (ভূমি), দৌলতখান, ভোলা। ভোলা জেলা স্কাউট সম্পাদক জাকির হোসেন তালুকদার, দৌলতখান উপজেলা স্কাউটস সম্পাদক এম এ তাহের।

এসময়, আরো উপস্থিত ছিলেন দৌলতখান উপজেলাধীন বিভিন্ন ইউনিয়ন চেয়ারম্যান ও সরকারি কর্মকর্তা।অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ভোলা জেলা প্রশাসক তৌফিক-ই-লাহী চৌধুরী বলেন, আমরা সরকারি কর্মকর্তা, জন প্রতিনিধি ও সুশীল সমাজের সহযোগিতা নিয়ে ভোলা জেলাকে একটি সুন্দর রূপে রূপান্তর করতে চাই।

জলোচ্ছ্বাসে সুন্দরবন থেকে ভেসে আসা অজগর মোংলায় উদ্বার

জলোচ্ছ্বাসে সুন্দরবন থেকে ভেসে আসা অজগর মোংলায় উদ্বার
জলোচ্ছ্বাসে সুন্দরবন থেকে ভেসে আসা অজগর মোংলায় উদ্বার
মোঃএরশাদ হোসেন রনি ঃ জলোচ্ছ্বাসে সুন্দরবন থেকে ভেসে আসা অজগর মোংলায় উদ্বার।মোংলার একটি বসত বাড়ির হাঁস-মুরগীর খোপ থেকে অজগর সাপ উদ্ধার করা হয়েছে। উদ্ধার করা ওই সাপটি মেরে ফেলে ফেলেছে খোপের ৫টি হাঁস ও ২টি মুরগী।

সোমবার সকাল ৯ টার দিকে উপজেলার চিলা ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা মোঃ রাসেল হাওলাদারের বাড়ির খোপে অজগর সাপটিকে দেখতে পেয়ে তারা বনবিভাগকে খবর দেয়। পরে খবর পেয়ে বনবিভাগের সদস্যরা খোপ থেকে সাপটি উদ্ধার করে। 

বনবিভাগের মোংলার চাঁদপাই রেঞ্জের ষ্টাফ মোঃ মিজানুর রহমান বলেন, উদ্ধারকৃত সাপটির ওজন ১২ কেজি, লম্বা ৯ ফুট। সাপটি বনে ছেড়ে দেয়া হয়েছে। ইয়াসের জলোচ্ছ্বাসে সাপটি সুন্দরবন থেকে ভেসে লোকালয়ে চলে আসে বলে ধারণা করছে বনবিভাগ। 

কিশোরগঞ্জে লাভের স্বপ্ন বুনছেন পাট চাষীরা

কিশোরগঞ্জে লাভের স্বপ্ন বুনছেন পাট চাষীরা

লাতিফুল আজম,কিশোরগঞ্জ(নীলফামারী)প্রতিনিধিঃবিগত কয়েক বছর থেকে পাট শিল্পের নানানমুখী সমস্যায় তার নিজস্ব স্বকীয়তা হারালে নীলফামারী কিশোরগঞ্জের পাট চাষীরা লোকসান গুনতে গুনতে সোনালী আঁশ পাট চাষে মুখ ফিরিয়ে নেন।বর্তমান সরকার পাটকলগুলো পুনরায় চালুর পাশাপাশি পাটের বহুমুখী ব্যবহারে গুরুত্ব দেয়াই এ উপজেলায় দিনদিন বাড়ছে এর চাষাবাদ। আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় পাটের ভাল ফলনের স্বপ্ন বুনছেন।আশানুরুপ দামও আশা করছেন চাষীরা। স্থানীয়রা জানান,কয়েক বছর আগে পাট চাষ করে তারা লোকসানে পড়েছিলেন।তাই অনেক বাধ্য হয়ে অন্য ফসলের দিকে ঝুঁকে পড়েন।স্বল্প পরিসরে যে সব পুরনো চাষি পাটের আবাদ ধরে রেখেছিলেন তারাই আজ লাভবান হয়েছে।লাভ বাড়ছে তাই কৃষকরা ঝুঁকছেন পাট চাষে।সরেজমিনে দেখা গেছে,উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় নজর কাড়া পাটের আবাদ হয়েছে।এ সময় পুরনো পাট চাষী চাঁদখানা ইউপি'র লাভলু,বাহাগিলী উঃদুরাকুটি ময়দান পাড়া গ্রামের সামাদ সরকার,সদর ইউপি'র ইসমাইল দোলাপাড়া গ্রামের ফজলু জানান, সরকার পলিথিনের ব্যবহার পুরোপুরি নিষিদ্ধ করে আরও বেশি পাটকল চালুর পাশাপাশি সর্বত্র পাটের ব্যবহার নিশ্চিত করলে পাটশিল্প ফিরে পাবে তার হারানো গৌরব।আর পাট চাষীরা আবারও ফিরবে সোনালী দিনে।
উপজেলা কৃষি অফিসার হাবিবুর রহমান জানান,এ বছর ৩৬৯ হেক্টর জমিতে পাট চাষের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে।চলতি বছর চাষীরা বারি-১ও ৯৮৯ জাতের পাটের চাষাবাদ করছেন।মাঠ পর্যায়ে পাট চাষীদের প্রশিক্ষনের পাশাপাশি রোগবালাই সম্পর্কে পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে।পাটের ভাল দাম পেলে চাষীরা লাভবান হবেন।

হুইপ ইকবালুর রহিমের দায়িত্ব নেয়া মুন্নীর চিকিৎসক হওয়ার স্বপ্ন পুরন হলো

হুইপ ইকবালুর রহিমের দায়িত্ব নেয়া মুন্নীর চিকিৎসক হওয়ার স্বপ্ন পুরন হলো
হুইপ ইকবালুর রহিমের দায়িত্ব নেয়া মুন্নীর চিকিৎসক হওয়ার স্বপ্ন পুরন হলো
মামুনুর রশিদ।দিনাজপুর প্রতিনিধি  ​ দিনাজপুর সদর-৩ আসনের সাংসদ ও জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম-এর হস্তক্ষেপে অসহায় ও হতদরিদ্র পরিবারের মেয়ে পাবনা জেলার শিক্ষার্থী মুন্নীর চিকিৎসক হওয়ার স্বপ্ন পুরনের যাত্রা শুরু হলো। মুন্নীর মুখে হাসি, হৃদয়ে উচ্ছলতা, আর সুর্যের মত আলো মুখে জল জল করছে। পিতা ও ভাইকে নিয়ে দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজে প্রবেশ করলেন শিক্ষার্থী মুন্নী। যে আনন্দ মুন্নী নিজেই ধরে রাখতে পারছিলো না। এ স্বপ্ন পুরন হবে, মুন্নী চিকিৎসক হবে এ যেন এখনো স্বপ্ন। তাই বিশাদের মধ্যেও যেন হাসির ফোয়ারা। চোখে পানি, মুখে হাসি। এ যেন এক অন্যরকম দৃশ্যপট। এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ ডাঃ নাদির হোসেন, বললেন কি হয়েছে মুন্নী, কাদছো ও হাসছো কেন ? উত্তরে জান্নাতুম মৌমিতা মুন্নী বললেন, মহান জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম যে দায়িত্ব নিয়ে আমাকে চিকিৎসক হওয়ার জন্য যে যাত্রা শুরু করলেন আল্লাহপাক যেন আমাকে সেই শক্তি, মেধা ও প্রজ্ঞা দান করেন। আমার অসহায় গরিব পিতা মাতা আমার এই স্বপ্ন কোন দিন পুরন করতে পারতো না। কিন্তু যে উদ্যোশ্য ও  আদর্শ নিয়ে ইকবালুর রহিম এমপি যে দায়িত্ব নিয়েছেন আমিও যেন অসহায় দরিদ্র মানুষের সেবা করে এ দায়িত্ব পালন করতে পারি। ইকবালুর রহিমেরও স্বপ্ন যেন আমিও পুরন করতে পারি।  
এ ব্যাপারে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ ডাঃ নাদির হোসেন বলেন, কোভিড-১৯ এর এই মহামারির সময় সাহসি চিকিৎসকদের খুবই প্রয়োজন। জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি চিকিৎসক তৈরি করার জন্য যে দায়িত্বগুলি নিচ্ছেন তা শুধু দিনাজপুরের জন্য নয়, সারাবাংলাদেশের জন্য একটা দৃষ্টান্ত  ও প্রশংসনীয় উদ্যোগ। এমন একটি মানুষের সন্ধানে আমাদের এগিয়ে যেতে হবে। ইকবালুর রহিমের সততা, সাহসিকতা , মনোবল  ও প্রবল ইচ্ছাকে আমরা একটু সহযোগিতা করলেই চিকিৎসা ক্ষেত্রে একটি বৈপ্লিক পরিবর্তন ঘটার সম্ভাবনা রয়েছে। এমন একটি মানুষ যার নাম ইকবালুর রহিম। এই মানুষের মত আরও কিছু মানুষের প্রয়োজন এদেশে। এটা আমাদের প্রত্যাশা।  
মুন্নীর বাবা বাকী বিল্লাল এসয় বলেন, ইকবালুর রহিম এমপির মত মানুষ এ দেশে জন্ম নেয়া প্রয়োজন। অসহায় দরিদ্র  ও গরীব মানুষের পাশে  না দাড়াতে পারলে এ দেশের মানুষ চিকিৎসা সেবা নয়, সব সেবা থেকে বঞ্চিত হবে। তাই ইকবালুর রহিমের মত মানুষ এ দেশে খুবই প্রয়োজন। 
হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি বলেন, মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক প্রয়াত সংসদ সদস্য এম আব্দুর রহিম মেডিক্যাল কলেজ আমার প্রয়াত বাবার নামে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নামকরণ করেছেন। আমি সংসদের যে ভাতা পাই সেই অর্থ দিয়ে প্রতি বছরই মেধাবী শিক্ষার্থীদের সাহায্যে ব্যয় করে থাকি। বর্তমানে আমাদের এই মেডিক্যাল কলেজে ৫ জন শিক্ষার্থী বিনাখরচে পড়াশোনা করছেন। ইতোমধ্যে ১৪ জন এমবিএস পাস করেছেন। মুন্নীর পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগ করে তাদের চিন্তামুক্ত করেছি। তার মেডিক্যাল কলেজের শিক্ষা গ্রহনের জন্য যে অর্থ ব্যয় হবে সেটা আমি বহন করছি। তিনি বলেন, এই দেশে সবাইকে একে অপরের জন্য এগিয়ে আসতে হবে। তাহলে ভাল চিকিৎসক, প্রকৌশলী, শিক্ষাবিদ, মানব সম্পদ বিজ্ঞানীসহ নানা জ্ঞানি গুণি মানুষ গড়ে উঠবে। এ দেশ হবে উন্নয়নের প্রধান চাবিকাঠি। মানুষ, শান্তি সুখে জীবন যাপন করবে। স্বপ্ন পুরন হবে এ দেশের স্বাধীনতা স্থপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের। পরিশ্রম, সার্থক হবে প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার। 
উল্লেখ, পাবনা জেলার হতদরিদ্র বাকী বিলালের কন্যা জান্নাতুম মৌমিতা মুন্নী ভাল ফলাফল করেও মেডিকেল পড়ার ইচ্ছা পুরন হচ্ছিলো না। এ খবর ইকবালুর রহিম এমপির কাছে গেলে তিনি মুন্নীর চিকিৎসক হওয়ার পড়াশোনার দায়িত্ব নেন এবং মুন্নী রোববার এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজে ভর্তি হন।

শান্তিমুখর জনপদের উদ্যোগে তামাক বিরোধী পথসভা অনুষ্ঠিত

শান্তিমুখর জনপদের উদ্যোগে তামাক বিরোধী পথসভা অনুষ্ঠিত

ডা.এম.এ.মান্নান,টাংগাইল জেলা প্রতিনিধি:
বিশ্ব তামাক মুক্ত দিবস উপলক্ষে সরকার কর্তৃক নিবন্ধিত শান্তিমুখর জনপদের উদ্যোগে তামাক, জর্দা,মাদক, হিরোইন,গাজা,ইয়াবাও ধুমপান বিরোধী পথসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।আজ সোমবার, ৩১ মে ২০২১ খ্রি.সকাল ৮.০০ টা হইতে নাগরপুর সহ টাংগাইল জেলার বিভিন্ন স্পটে প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ইলিয়াছ কুদরত ও সাধারন সম্পাদক রৌশনারা মাসুদার নেত্বতে মাদক ও তামাক বিরোধী পথসভা হয়।  এই পথসভা চলবে রাত ৮.০০ টা পর্যন্ত।         

তামাক ও মাদক বিরোধী পথসভায় উপস্হিতি ছিলেন-শান্তিমুখর জনপদ নাগরপুর সদর ইউনিয়নের সাধারন সম্পাদক ডা.এম.এ.মান্নান,ভারড়া ইউপি সভাপতি আমজাদ ইসলাম,সাধারন সম্পাদক জাহিদুল ইসলাম,গয়হাটা ইউপি সভাপতি পান্না লাল মাহমুদ,বেকড়া ইউপি সভাপতি আবু বকর ছিদ্দিক,মোকনা ইউপি সভাপতি মোবারক হোসেন, সহবতপুর ইউপি সভাপতি দেলজু মনিরুজ্জামান প্রমুখ।

আজ বিশ্ব তামাকমুক্ত দিবস

আজ বিশ্ব তামাকমুক্ত দিবস

নিউজ ডেস্কঃ   আজ বিশ্ব তামাকমুক্ত দিবস
আজ (৩১ মে) বিশ্ব তামাকমুক্ত দিবস। তামাকের ব্যবহার এবং এর ফলে স্বাস্থ্যের উপর এর নেতিবাচক প্রভাব তুলে ধরে জনসচেতনতা সৃষ্টি করতে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) সদস্য রাষ্ট্রসমূহ ১৯৮৭ সালে বিশ্ব তামাকমুক্ত দিবস চালু করে। প্রথম বছর ১৯৮৮ সালের ৭ এপ্রিল বিশ্ব তামাকমুক্ত দিবস উদযাপিত হলেও একই বছরের বিশ্ব স্বাস্থ্য সম্মেলনে ৩১ মে তারিখ নির্ধারণ করা হয়। এরপর থেকে প্রতি বছরের ৩১ মে বিশ্বব্যাপী দিবসটি পালিত হয়ে আসছে। এই বছরে দিবসটির আন্তর্জাতিক প্রতিপাদ্য বিষয় হলো "ছেড়ে দিতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ (Commit to Quit)"।

তামাকের ক্ষতিকারক দিক এবং স্বাস্থ্যের উপর এর নেতিবাচক প্রভাব তুলে ধরে জনসচেতনতা সৃষ্টি করতে বাংলাদেশেও দিবসটি গুরুত্বসহকারে পালিত হয়ে আসছে। প্রতিবছরের ন্যায় এ বছরও বাংলাদেশে দিবসটি গুরুত্বসহকারে পালিত হবে। বাংলাদেশ এবারের দিবসটির প্রতিপাদ্য বিষয় হলো "তামাকের বিজ্ঞাপন, প্রণোদনা ও পৃষ্ঠপোষকতা নিষিদ্ধ হোক"।

তামাকের কারণে প্রতিবছর বিশ্বে ৬০ লাখ মানুষ প্রাণ হারায় এবং বর্তমান প্রবণতা অব্যাহত থাকলে মৃত্যুর এ সংখ্যা ২০৩০ সাল নাগাদ বছরে ৮০ লাখে দাঁড়াবে। এরমধ্যে শুধু বাংলাদেশেই তামাক ব্যবহারজনিত রোগে বছরে ১ লাখ ২৬ হাজার মানুষ মারা যায়। পরোক্ষ ধূমপানের হারও বাংলাদেশে বিশ্বের অন্যতম সর্বোচ্চ; ৬৩ শতাংশ মানুষ কর্মক্ষেত্রে পরোক্ষ ধূমপানের শিকার হচ্ছেন।


ইউএস সার্জন জেনারেল রিপোর্ট-২০১৪ অনুযায়ী, প্রায় ৯০ শতাংশ সিগারেট ধূমপায়ী ১৮ বছর বয়সের মধ্যে প্রথমবার ধূমপান করেন। অল্প বয়সে তামাকপণ্যে আসক্ত হয়ে পড়লে ফুসফুসের কার্যক্ষমতা হ্রাস পেতে থাকে এবং বয়স বৃদ্ধির সাথে সাথে ফুসফুসের স্বাভাবিক বৃদ্ধি বাধাগ্রস্ত হয়। ফুসফুস ক্যান্সার, হৃদরোগ, অকাল বার্ধক্য, মানসিক অস্থিতিশীলতাসহ নানাবিধ রোগ সৃষ্টি হয় তামাকের কারণে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তথ্য মতে, যারা কিশোর বয়সে ধূমপানে আসক্ত হয়, তাদের অ্যালকোহলে আসক্ত হয়ে পড়ার সম্ভাবনা স্বাভাবিকের তুলনায় তিনগুণ, গাঁজায় আটগুণ এবং কোকেইনের ক্ষেত্রে ২২ গুণ বেশি। অর্থাৎ তামাক ও নিকোটিন কেবল একটি আসক্তিই নয়, এটি তরুণদের আরও অনেক বিধ্বংসী আসক্তির পথে পরিচালিত করে।

তাদের মতে, হৃদরোগজনিত মৃত্যুর প্রায় ১২ শতাংশের জন্য দায়ী তামাক ব্যবহার ও পরোক্ষ ধূমপান। হৃদরোগের কারণ হিসেবে উচ্চরক্তচাপের পরই তামাক ব্যবহারের অবস্থান। যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক দ্য ইনস্টিটিউট ফর হেলথ মেট্রিক্স অ্যান্ড ইভালুয়েশনের (আইএইচএমই) সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী ২০০৫ থেকে ২০১৬ সাল পর্যন্ত বাংলাদেশে অকালমৃত্যুর কারণের তালিকায় হৃদরোগ সন্তম থেকে প্রথম স্থানে উঠে এসেছে এবং এই পরিবর্তনের হার প্রায় ৫৩ শতাংশ। আর এই মৃত্যুর জন্য দায়ী হিসেবে তামাকের অবস্থান চতুর্থ।

তামাক ও তামাকজাত পণ্যের ব্যবহার দিনকে দিন জনস্বাস্থ্যের জন্য হুমকির মাত্রা বাড়িয়ে তুলেছে। তামাকের কারণে হৃদরোগ, স্ট্রোক, ফুসফুস ক্যানসার, মুখ গহ্বরের ক্যানসার, ডায়াবেটিকস, অ্যাজমাসহ নানা রোগ বাড়ছে। এসব রোগ প্রাণঘাতী, চিকিৎসা ব্যয়বহুল ও দীর্ঘমেয়াদি। বাংলাদেশে সবচেয়ে কমমূল্যে তামাকজাত দ্রব্য কিনতে পাওয়া যায়। ফলে দরিদ্রদের মধ্যে তামাকের ব্যবহার বেশি। এ জন্য বাংলাদেশের অর্থনীতিতে তামাকের প্রভাব অত্যন্ত নেতিবাচক। সব রকম তামাকজাত পণ্য থেকে সরকার যে পরিমাণ রাজস্ব আয় করে, এর দ্বিগুণের বেশি অর্থ তামাকজাত রোগের চিকিৎসায় স্বাস্থ্য খাতে ব্যয় করতে হয়।

বাংলাদেশে ২০০৫ সালের আইনে তামাকের বিজ্ঞাপন নিষিদ্ধ করা হলেও সেটি ছিল আংশিক নিষেধাজ্ঞা যার মধ্যে অনেকগুলো ফাঁক-ফোকর ছিল। তামাক কোম্পানিগুলো অত্যন্ত চতুরতার সঙ্গে সেসব ফাঁক-ফোকর ব্যবহার করেছে। তাদের একটি বড় কৌশল ছিল তামাকপণ্যের বিক্রয়কেন্দ্রে বিজ্ঞাপন ও প্রচারণা। আগের আইনটিতে যেহেতু সীমিত আকারে তামাকপণ্যের প্রচারণার সুযোগ ছিল, সে সুযোগ কাজে লাগিয়ে কোম্পানিগুলো প্রত্যেকটি দোকানকে তামাকের বিজ্ঞাপনের একেটি বড় মাধ্যমে পরিণত করেছে। তাছাড়া গণমাধ্যমে তামাকের বিজ্ঞাপন নিষিদ্ধ হওয়ায় তারা বিভিন্ন উপায়ে পরোক্ষ বিজ্ঞাপন ও প্রাচারণা চালাতে থাকে।


তামাকজাত দ্রব্য বিক্রি ও বিপণনের জন্য বাংলাদেশে সুনির্দিষ্ট কোনো নীতিমালা নেই। এমনকি তামাকজাত দ্রব্য বিক্রির সঙ্গে সম্পৃক্তদের নির্ধারিত কোনো ট্রেড লাইসেন্স গ্রহণের ব্যবস্থা নেই। এ কারণে শিল্প প্রতিষ্ঠান ও বিভিন্ন বিনোদনকেন্দ্রের আশপাশ এলাকা, ডিপার্টমেন্টাল স্টোর, খাবারের দোকান, রেস্টুরেন্টসহ বিভিন্ন স্থানে অনিয়ন্ত্রিতভাবে তামাকজাত পণ্য বিক্রি করা হচ্ছে। সহজলভ্যতা ও সহজপ্রাপ্যতার কারণে যত্রতত্র তামাকজাত পণ্যের বিপণনকেন্দ্র গড়ে উঠেছে।

তামাক কোম্পানিগুলোর এসব কূটকৌশল রোধ করার জন্য 'ধূমপান ও তামাকজাত দ্রব্য ব্যবহার (নিয়ন্ত্রণ) (সংশোধন) আইন, ২০১৩'-তে বেশ কিছু শক্ত পদক্ষেপ অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। সংশোধিত আইনে তামাকের বিক্রয়কেন্দ্রে তামাকজাত দ্রব্যের যে কোনো ধরনের প্রচারণা নিষিদ্ধ করা হয়েছে এবং তামাক কোম্পানি কর্তৃক সামাজিক দায়বদ্ধতা কর্মসূচির প্রচারণার উপর শক্ত বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছে, যার ফলে তামাক কোম্পানিগুলো জনকল্যাণমূলক কর্মকাণ্ডে অংশগ্রহণ করলেও তা প্রচারে কোম্পানির নাম, সাইন, ট্রেডমার্ক বা প্রতীক ব্যবহার করতে পারবে না।

এছাড়া সিনেমা, টেলিভিশন, রেডিও, ইন্টারনেট, মঞ্চ অনুষ্ঠান বা গণমাধ্যমে তামাকজাত দ্রব্য ব্যবহারের দৃশ্য প্রচারে বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছে। আঠারো বছরের কমবয়সী ছেলেমেদের কাছে তামাকজাত দ্রব্যের বিক্রয় এবং তাদের তামাকজাত দ্রব্যের বিপনন বা বিতরণকাজে ব্যবহার সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

বর্তমানে দেশে তামাকজাত দ্রব্য ব্যবহারের ফলে যে ভয়াবহ স্বাস্থ্য ও অর্থনৈতিক ঝুঁকি তৈরি হচ্ছে, এর কারণে প্রধানমন্ত্রী ২০১৬ সালে অনুষ্ঠিত দক্ষিণ এশীয় স্পিকারদের সম্মেলনে ২০৪০ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে তা।

লালমনিরহাটে গায়ে পানের পিক পরায় বৃদ্ধের মাথা ফাটালেন সরকারি কর্মচারী

লালমনিরহাটে গায়ে পানের পিক পরায় বৃদ্ধের মাথা ফাটালেন সরকারি কর্মচারী

রশিদুল ইসলাম রিপন, লালমনিরহাট জেলা প্রতিনিধিঃ লালমনিরহাটে পানের পিক গায়ে ফেলাকে কেন্দ্র করে এক বৃদ্ধের মাথা ফাটিয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। লালমনিরহাট সদর হাসপাতালের কর্মচারী নিখিল চন্দ্র (৫০) এর বিরুদ্ধে। অভিযুক্ত নিখিল চন্দ্র লালমনিরহাট সদর উপজেলার পঞ্চগ্রাম ইউনিয়নের হরিদেব (জুরাবান্ধা) গ্রামের মৃত হরেন চন্দ্রের ছেলে। আর আহত বৃদ্ধ প্রফুল্ল (৬৫) তারই প্রতিবেশী একই গ্রামের, মৃত কোনারাম রায়ের ছেলে।

এ ঘটনায় বৃদ্ধের ধর্ম জামাতা শ্রী বাবলু চন্দ্র রায় বাদী হয়ে লালমনিরহাট সদর হাসপাতালের ঐ কর্মচারীসহ ৫ জনের নাম উল্লেখ করে লালমনিরহাট সদর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

অভিযোগ ও প্রতিবেশীদের কাছ থেকে জানাযায়, গত বৃহস্পতিবার (২৭) মে বিকেলে বৃদ্ধ প্রফুল্ল চন্দ্র রায় (৬৫) কে, তার বাড়িতে ঢুকে অভিযুক্ত নিখিল ও তার সাথে থাকা অভিযুক্তরা, লোহার রড ও হাতুড়ি দিয়ে আঘাত করতে শুরু করে। এসময় কোমরে রডের ও মাথায় হাতুড়ির আঘাতে বৃদ্ধ প্রফুল্ল মাটিত লুটিয়ে পরে।সোরগোল শুনে এলাকাবাসী ঘটনাস্থলে এসে বৃদ্ধকে রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখে তাকে দ্রুত লালমনিরহাট সদর হাসপাতালে ভর্তি করে।

ঘটনাটি নিয়ে আহত বৃদ্ধের সাথে কথা বললে তিনি বলেন, আমি নিরিহ মানুষ, নিখিল সরকারি চাকরি করায় তার অনেক ক্ষমতা, তাই তুচ্ছ ঘটনায় এই ভাবে হাতুড়ি দিয়ে আমার মাথা ফাটিয়েছে।বৃদ্ধ প্রফুল্ল বর্তমানে লালমনিরহাট সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধিন অবস্থায় রয়েছেন।গায়ে পানের পিক ফেলাকে কেন্দ্র করে এমন মারামারির ঘটনায় ঐ এলাকার মানুষের মাঝে উত্তেজনা বিরাজ করছে।

অভিযুক্ত সেই হাসপাতালের কর্মচারী নিখিল চন্দ্রের সাথে মোবাইল ফোনে কথা বললে তিনি বলেন, প্রফুল্ল আমার এক সময়ের ভালো বন্ধু, কিন্তু বর্তমানে সে আমাকে দেখলেই থুথু ফেলে। ঘটনার দিন মোটরসাইকেল যোগে কর্মস্থল থেকে বাড়ি ফেরার সময়, আমার গায়ে পানের পিক ফেলে আমার পরনের সার্ট নষ্ট করে ফেলেছে।এবিষয়ে লালমনিরহাট সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শাহা আলম বলেন, এ ঘটনায় থানায় অভিযোগ দায়ের হয়েছে তদন্তশেষে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

মেয়র হিসেবে দায়িত্বভার গ্রহনের পর ৩ মাসে যে সব কাজ বাস্তবায়ন করেছেন নন্দীগ্রাম পৌরসভার মেয়র আনিছুর রহমান

মেয়র হিসেবে দায়িত্বভার গ্রহনের পর  ৩ মাসে যে সব কাজ বাস্তবায়ন করেছেন নন্দীগ্রাম পৌরসভার মেয়র আনিছুর রহমান

আব্দুল আহাদ,নন্দীগ্রাম (বগুড়া) প্রতিনিধি:নন্দীগ্রাম পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থী নন্দীগ্রাম পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি, নন্দীগ্রাম উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাবেক প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি,  বগুড়া জেলা ছাত্রলীগ এর সাবেক অর্থ বিষয়ক সম্পাদক, নন্দীগ্রাম উপজেলা  ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি,নন্দীগ্রাম উপজেলা ছাত্রলীগ এর সাবেক সাধারণ সম্পাদক আনিছুর রহমান প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন নির্বাচিত হলে নন্দীগ্রাম পৌরসভা কে ডিজিটাল নন্দীগ্রাম পৌরসভা হিসেবে উপহার দিব।গত ২৪ ই  ফেব্রুয়ারি নন্দীগ্রাম পৌরসভার মেয়র পদে রাজশাহীতে শপথ গ্রহন করেছেন মেয়র আনিছুর রহমান তার পর থেকেই উন্নয়ন মূলক কাজ শুরু করেছেন মেয়র আনিছুর রহমান  গত ২৪ই ফেব্রুয়ারি থেকে ৩০ ই মে পর্যন্ত ৩ মাস ৮ দিনে উন্নয়ন মূলক যে সব কাজ করেছেন,

নন্দীগ্রাম  ২০ শয্যা হাসপাতাল পরিস্কার পরিচ্ছন্ন সহ নিয়মিত রোগী দেখার ব্যবস্থা করা হবে। সেই প্রতিশ্রুতি গত শনিবার ২১ই  মার্চ  বাস্তবায়ন করছেন নন্দীগ্রাম পৌরসভার মেয়র আনিছুর রহমান । পুরো হাসপাতালের ক্যাম্পাসের চিত্র পাল্টে গেছে। করা হয়েছে আলোকসজ্জা। 

নন্দীগ্রামে ঢাকইর ৫ নং ওয়ার্ডে ৮০ লক্ষ টাকা ব্যায়ে রাস্তা নির্মাণ কাজ উদ্বোধন করছেন মেয়র আনিছুর রহমান ।গত ২১ ই মার্চ নন্দীগ্রামে পৌরসভার  (৬ নং ওয়ার্ড) দামগাড়া মাদ্রাসা পুকুরের প্যালাসাইডিং কাজের উদ্বোধন করছেন নন্দীগ্রাম পৌরসভার মেয়র আনিছুর রহমান। 

গত ২৬ ই মার্চ নন্দীগ্রাম পৌরসভার ৬নং ওয়ার্ড দামগাড়া জামে মসজিদে ৬টি এসি প্রদান করেন নন্দীগ্রাম পৌর আওয়ামীলীগ এর সভাপতি ও নন্দীগ্রাম পৌরসভার মেয়র আনিছুর রহমান । এ সময়ে উপস্থিত ছিলেন নন্দীগ্রাম উপজেলা আওয়ামীলীগ এর ভারপ্রাপ্ত সভাপতি রফিকুল ইসলাম,নন্দীগ্রাম পৌর আওয়ামীলীগ এর সাধারন-সম্পাদক মুকুল হোসেন সহ পৌরসভার সকল কাউন্সিলরবৃন্দ ।

গত (১০-০৪-২০২১) ওমরপুর ২নং ওয়ার্ডে কবরস্থানের আলোকিত করনের কাজ উদ্বোধন করছেন মেয়র  আনিছুর রহমান। গত ১০এপ্রিল ২০২১ করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে বগুড়ার নন্দীগ্রামে বিনামূল্যে তিন হাজার মাস্ক বিতরণ করেছেন পৌরসভার মেয়র আনিছুর রহমান।গত ১৬ ই এপ্রিল নন্দীগ্রামে ফোকপাল ১ নং ওয়ার্ডে ৮৫ লক্ষ টাকা ব্যায়ে রাস্তা নির্মাণ কাজ পরিদর্শন করেন ।

 গত২৩ ই এপ্রিল জলাবদ্ধতা  নিরসনের জন্য নন্দীগ্রাম পৌরসভার দামগাড়া ৬ নং  ওয়ার্ড হতে ওমরপুর ২ নং ওয়ার্ড পর্যন্ত মহাসড়ক এর দুপাশে ড্রেন খননের কাজ উদ্বোধন করছেন,মেয়র আনিছুর রহমান ।গত ২৭ ই এপ্রিল নন্দীগ্রাম পৌরসভার ৪০০ টি পরিবারের মাঝে জননেত্রী শেখ হাসিনার উপহার হিসেবে খাদ্য সামগ্রী (চাল,ডাল,চিনি,তেল) প্রদান করছেন, মেয়র আনিছুর ।

গত ২৮ ই এপ্রিল নন্দীগ্রাম পৌরসভার ৬ নং ওয়ার্ডে ৬০ নক্ষ টাকা ব্যায়ে দামগাড়া হতে বগুড়া-নাটোর  মহাসড়ক পর্যন্ত কার্পেটিং কাজের উদ্বোধন করেন নন্দীগ্রাম পৌরসভার মেয়র ও পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি আনিছুর রহমান । এ সময়ে উপস্থিত ছিলেন নন্দীগ্রাম উপজেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি রফিকুল ইসলাম ও কাউসিলরবৃন্দ।

গত ৬ ই মে করোনা কালীন সময়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর উপহার হিসেবে নন্দীগ্রাম পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডে ৪৬২১ জনের মাঝে প্রায় ২১ লক্ষ টাকার অনুদান প্রদান করেন নন্দীগ্রাম পৌরসভার মেয়র ও পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি আনিছুর রহমান। এ সময়ে উপস্থিত ছিলেন নন্দীগ্রাম উপজেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি রফিকুল ইসলাম, পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মুকুল হোসেন,কাউন্সিলর বৃন্দ এবং ট্যাগ অফিসার।

গত  (৯/৫/২০২১) ঈদ উপলক্ষে করোনাকালীন সময়ে নন্দীগ্রাম পৌরসভার ৯০০ পরিবার এর মাঝে পৌরসভার রাজস্ব তহবিল হতে আনুমানিক ৪ লাখ টাকার  খাদ্য সামগ্রী (চাল,ডাল, চিনি, লাচ্ছা ,সেমাই) বিতরন  করেন নন্দীগ্রাম পৌরসভার মেয়র ও পৌর আওয়ামীলীগ এর সভাপতি আনিছুর রহমান। এ সময়ে উপস্থিত ছিলেন সকল কাউন্সিলর বৃন্দ ।

গত ( ২৮-৫-২০২১ ) উমরপুর ২ নং ওয়ার্ডে ২০ লাখ টাকা দিয়ে রাস্তা ও ড্রেন কাজের  উদ্বোধন করেন নন্দীগ্রাম পৌরসভার মেয়র ও পৌর আওয়ামীলীগ এর সভাপতি আনিছুর রহমান ।

গত ৩০ মে নন্দীগ্রাম পৌরসভার ১নং ওয়ার্ড  ফোকপাল  গ্রামে ১০ লক্ষ টাকা ব্যয়ে ড্রেন উদ্বোধন করেছেন নন্দীগ্রাম পৌরসভার মেয়র আনিছুর রহমান।

সরকারের ঈদ উপহারের টাকা যাচ্ছে কোথায়?

সরকারের ঈদ উপহারের টাকা যাচ্ছে কোথায়?

তানভীর আহমেদ, মেহেরপুর জেলা প্রতিনিধিঃ দেশের মানুষ যাতে সকলেই ঈদের আনন্দ উপভোগ করতে পারে সেই জন্য সরকার ঈদ উপহার হিসেবে দুস্থ ও অসহায় মানুষদেরকে মোবাইল একাউন্টের মাধ্যমে প্রত্যাককে ২৫শ করে টাকা দেওয়ার ঘোষনা দিয়েছেন।
কিন্তু অনেকের ক্ষেত্রে এই উপহারে পড়েছে কাল থাবা। মোবাইলের টাকা মোবাইল থেকেই গায়েব হয়ে যাওয়ার অভিযোগ তুলেছে ভুক্ত ভোগীদের অনেকেই। এই টাকা কোন ভাবে হাতিয়ে  নিচ্ছে দেশের ভিন্ন ভিন্ন জেলা থেকে।
এমন অভিযোগ নিয়ে আসে গাংনী উপজেলার সিন্দুরকোটা গ্রামের জালাল উদ্দিনের ছেলে নজরুল ইসলাম। প্রথমে বিশ্বাস না হলেও তার পিড়াপিড়িতে তাকে পাঠানো হয় মটমুড়া ইউনিয়ন পরিষদের উদ্যোক্তা মহিদুল ইসলামের কাছে। 

উদ্যোক্তা মহিদুল ইসলাম জানান, আমি একটি স্মার্ট ফোনে নগদ এ্যাপ ইন্সটল করে তার একাউন্টের স্টেটমেন্ট দেখলে দেখা যায় যে, গত ৫ মে তার নগদ একাউন্টে ২৫শ টাকা এসেছে। পরে ১৩ মে তার টাকা দুবারে ০১৫৫০-৬৬৯৬৫৩ নাম্বারের নগদ একাউন্টে ক্যাশ আউট হয়েছে। ওই নাম্বারের মালিকের বাড়ি সিলেটের কানাইঘাট চাতুলবাজারে। 

এরপর অনুসন্ধানে জানা যায়, কোদাইলকাটি গ্রামের কম্পিউটার দোকানদার মিলন হোসেনের কাছে এমন আরো তথ্য আছে। যোগাযোগ করা হয় মিলন হোসেনের সাথে।মিলন হোসেন জানান, আমার কাছে অনেকেই মোবাইল একাউন্টে লেনদেন করতে আসে। কয়েকদিন আগে কয়েকজন প্রধানমন্ত্রীর ঈদ উপহারের টাকা উঠাতে আসলে দেখা যায় তাদের একাউন্টে টাকা নেই। পরে এ্যাপ ইন্সটল করে স্টেটমেন্ট চেক করে দেখা যায় কমিল্লা থেকে টাকা উঠিয়ে নিয়েছে। এদের মধ্যে রয়েছে কোদাইলকাটি গ্রামের জাহা মন্ডলের ছেলে বিপ্লব হোসেন, ঝোড়পাড়া গ্রামের রেজাউল হকের ছেলে জিনারুল ইসলাম, একই গ্রামের মৃত মফেল উদ্দীনের ছেলে সেলিম রেজা।

গাংনী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মৌসুমী খানম জানান, এমনটি হওয়ার কথা নয়। তবে যদি এমনটি হয়ে থাকে তাহলে সেটা  কোন ইন্ডিভিজুয়াল সমস্যা নয়। হয়তোবা কোন হ্যাকার চক্র একাউন্টগুলোকে হ্যাক করে টাকা উঠিয়ে নিচ্ছে। বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নজরে আসলে অবশ্যই তারা ব্যবস্থা নিবেন।

জনগণের সাথে মতবিনিময় করেন আমিনুর রহমান

জনগণের সাথে মতবিনিময় করেন আমিনুর রহমান

স্টাফ  রিপোর্টারঃ জনগণের সাথে মতবিনিময় করেন আমিনুর রহমান।আজ (৩০ শে মে)  যশোর জেলার ঝিকরগাছা উপজেলার ১ নং গঙ্গানন্দপুর ইউনিয়ন এর ৫ নং ওয়ার্ডবাসীর সাথে মতবিনিময় করেন উক্ত ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ও বর্তমান এমপি প্রতিনিধি আমিনুর রহমান। সন্ধ্যায় বিষহরি গ্রামের সর্বস্তরের লোকজন এর সাথে মতবিনিময় কালে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামীলীগ নেতা ও মেম্বর পদপ্রার্থী ইমামুল হক,বাবুল আক্তার, নুর মোহাম্মদ, নিমাই, আঃ গফুর, প্রমুখ।এসময় তিনি তাদের সার্বিক খোঁজ খবর নেন এবং  জননেত্রী শেখ হাসিনার নির্দেষ মেনে চলার আহবান জানান।

লালমনিরহাটে সেবা নীড় সেবামূলক সংগঠনের পক্ষ থেকে রক্তের গ্রুপ নির্ণয় ক্যাম্পেইন

লালমনিরহাটে সেবা নীড় সেবামূলক সংগঠনের  পক্ষ থেকে  রক্তের গ্রুপ নির্ণয় ক্যাম্পেইন

 রশিদুল ইসলাম রিপন, লালমনিরহাট জেলা প্রতিনিধিঃ স্বেচ্ছায় করি রক্তদান, হাসবে রোগী বাঁচবে প্রাণ' এই স্লোগানকে বুকে ধারণ করে সেবামূলক সংগঠন 'সেবা নীড়ের' উদ্যোগে আজ ৩০ শে মে, রবিবার সকাল ১০ টা হইতে বিকাল ৩ টা পর্যন্ত লালমনিরহাট জেলার মহেন্দ্রনগর ইউনিয়নের, কাশিপুর দ্বি-মুখী উচ্চ বিদ্যালয়ে রক্তের গ্রুপ নির্ণয় কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়। এর আগে সংগঠন টি বিভিন্ন স্কুল ও কলেজে রক্তের গ্রুপ নির্ণয় কর্মসূচির আয়োজন করেন।

ভেলাবাড়ী কলেজের অধ্যাপক সাহেব বলেন, আমাদের লালমনিরহাট জেলায় এরকম একটি সেবামূলক সংগঠন আছে তা কল্পনার অতুলনীয়। আমি তাঁদের কর্মদক্ষতা দেখে মুগ্ধ হয়েছি এবং অনুপ্রাণিত হয়েছি।
আমি তাদের জন্য দোয়া করি, তারা যেন সারা বাংলাদেশে তাদের কার্যক্রম চালিয়ে যেতে পারে।

শিয়ালখোওয়া প্রি-ক্যাডেট স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যাপক সাহেব বলেন, এই সেবা নীড় সংগঠন টির কার্যক্রম এবং কার্যপ্রণালী অনেক পরিপূর্ণ এবং পরিমার্জিত। আমি মন থেকে তাদের জন্য দোয়া করি, তারা যেন এইভাবে অসহায় মানুষের পাশে থাকতে পারেন।কলেজ এবং স্কুলের ছাত্র-ছাত্রীদের রক্তের গ্রুপ নির্ণয় কর্মসূচিতে সার্বিকভাবে সহযোগিতা করেছেন সেবা নীড় পরিবার। ক্যাম্পেইন সুষ্ঠুভাবে পরিচালনায় কাজ করেছেন সেবা নীড়ের এক ঝাঁক তরুণ স্বেচ্ছাসেবী (প্রায় ৩০ জন) মানবতার ফেরিওয়ালা।

সেবা নীড়ের এই কাজকে সাধুবাদ জানিয়েছেন অত্র বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা মিসেস....।তিনি সেবা নীড়ের উত্তরোত্তর সাফল্য কামনা করেন। এছাড়াও কর্মসূচিতে উপস্থিত ছিলেন অত্র বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মোঃ খায়রুল ইসলাম, আঃ রাজ্জাক, এবং অন্যান্য ব্যাক্তিবর্গ।
উল্লেখ, সেবা নীড় সংগঠন টি প্রতিষ্ঠিত হওয়ার পর থেকেই বিভিন্ন সেবামূলক কাজ করে যাচ্ছে। ইতিমধ্যে জেলার বিভিন্ন উপজেলা এবং ইউনিয়নে রক্তের গ্রুপ  নির্ণয় কর্মসূচি ছাড়াও অসহায় ও এতিম শিশুদের নতুন পোশাক বিতরণ, শিক্ষার্থীদের শিক্ষা সামগ্রী প্রদান, বিভিন্ন উৎসবে অসহায় মানুষকে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ, হাফেজিয়া মাদ্রাসায় কোরআন প্যাকেজ বিতরণ ও ইফতার মাহফিল সহ বিভিন্নধরনের সেবামূলক কাজ করে যাচ্ছে।


সেবা নীড় সংগঠন এর পরিচালক মোঃ সাজু খাঁন বলেন, এই সেবামূলক সংগঠন টি সরকারিভাবে নিবন্ধিত হলে বাংলাদেশের 64 জেলায় গরীব ও অসহায় মানুষদের জন্য কাজ করতে পারবেন।
পরিচালক সাহেব আরো বলেন, নতুন প্রোগ্রাম হিসেবে সেবা নীড় হাতে নিয়েছেন, প্রত্যেক জেলা, উপজেলা, এবং ইউনিয়নের প্রত্যেকটি জামে মসজিদে ছোট ছোট বাচ্চাদের ধর্মীয় শিক্ষার ব্যবস্থা করণ।
তিনি আরো বলেন প্রত্যেকটা সুশীলসমাজ মানুষকে এগিয়ে আসতে হবে এবং অন্যের বিপদে পাশে দাঁড়াতে হবে। যদি তাই হয় তাহলে এই বাংলাদেশে হবে সোনার বাংলাদেশ।

নড়াইলে ডিবির অভিযানে ইয়াবা সম্রাট রমজান ৫৭৪ পিচ ইয়াবাসহ আটক

নড়াইলে ডিবির অভিযানে ইয়াবা সম্রাট রমজান ৫৭৪ পিচ ইয়াবাসহ আটক

মোঃআজিজুর বিশ্বাস,স্টাফ রিপোর্টার নড়াইল: নড়াইলের লোহাগড়া থানাধীন কামঠানা গ্রামে অভিযান চালিয়ে  ৫৭৪ পিচ ইয়াবাসহ এক মাদক ব্যাবসায়ী কে আটক করেছে নড়াইল জেলা গোয়েন্দা (ডিবি)পুলিশের একটি চৌকস টিম।রোববার ৩০ মে বিকাল ৩ টা ৩০ ঘটিকার দিকে মো:রমজান মোল্লা (৪২) নামে ওই ব্যক্তি কে তার নিজ বসতভিটা থেকে ইয়াবাসহ হাতেনাতে গ্রেফতার  করা হয়।

গোয়েন্দা পুলিশ সূত্রে জানা গেছে,নড়াইল জেলা পুলিশ সুপারের নির্দেশক্রমে গোপন তথ্যের ভিত্তিতে  নড়াইল জেলা গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের  এ এস আই মাহফুজুর রহমানের নেতৃত্বে সঙ্গীয় ফোর্স এর সহযোগিতায় কামঠানা এলাকায় অভিযান চালিয়ে মো: রমজান মোল্লা (৪২) কে ৫৭৪ পিচ ইয়াবা ট্যাবলেটসহ আটক করেন। 
আটককৃত মো: রমজান মোল্লা লোহাগড়া থানাধীন কামঠানা গ্রামের মৃত উলফাত মোল্লার ছেলে।এ বিষয়ে নড়াইল জেলা গোয়েন্দা ডিবি পুলিশের এ এস আই মাহফুজুর রহমান বলেন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে কামঠানা এলাকায় অভিযান চালিয়ে আসামীকে ইয়াবাসহ গ্রেফতার করেছি, এবং গ্রেফতার পূর্বক তাকে নড়াইল সদর থানা হেফাজতে রাখা হয়েছে ও নিয়মিত মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

শৈলকূপায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্রকরে দফায় দফায় হামলা,রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশংকা

শৈলকূপায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্রকরে দফায় দফায় হামলা,রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশংকা

ঝিনাইদাহ প্রতিনিধি:আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে ঝিনাইদহের শৈলকুপা উপজেলার রাণীনগর গ্রামে প্রতিপক্ষের বাড়ি ঘরে দফায় দফায় হামলা চালিয়ে বাড়িঘর ভাংচুরের অভিযোগ উঠেছে। রোববার সকালসহ গত ৩ দিনে অন্তত ২০ টি বাড়ী ঘরে হামলা ও ভাংচুর করা হয়। এদিকে হামলার আতংকে পুরুষশুণ্য ওই গ্রামে অন্তত ১'শ টি পরিবার।
স্থানীয়রা জানায়, আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে দীর্ঘদিন ধরে ওই গ্রামের শফিউদ্দিন জোয়ার্দ্দার ও ইয়ারুস শেখের সমর্থকদের মাঝে বিরোধ চলে আসছিল। গত বৃহস্পতিবার রাতে ইয়ারুস শেখের সামাজিক দল থেকে কিছু কর্মী শফিউদ্দিনের দলে যোগদান করে। দল ভারী হওয়ায় ওইদিন রাতেই শফিউদ্দিনের সমর্থকরা ইয়ারুসের সমর্থক সিদ্দিক মোল্লা, লতিফ মোল্লা, তোফাজ্জেল মোল্লা, আসাদুল মোল্লা, সুরাপ মৃধা, নওশের মোল্লা, কালাম মোল্লাসহ ১৫ টি বাড়িঘরে হামলা চালিয়ে ভাংচুর ও লুটপাট করে। পরবর্তীতে রোববার সকালে গ্রামের ফারুক হোসেন, আব্দুল গণি, মোবারেক বিশ্বাস, সাবু বিশ্বাসের ৪ টি বাড়িসহসহ ৩ দিনে ২০ টি বাড়ীঘর ভাংচুর, লুটপাট করা হয়। এদিকে হামলা আতংকে বাড়ি ছাড়া ইয়ারুসের অনেক সমর্থক।

ওই গ্রামের তাসলিমা খাতুন নামের এক গৃহবধু বলেন, প্রায়ই প্রায়ই শফিউদ্দিনের লোকজন আমাদের বাড়ি ভাংচুর করে। বৃহস্পতিবার ওদের সমাজে লোক গেছে। এখন ওদের লোক বেশি তাই আমাদের বাড়ি ভাংচুর করেছে। মারধরের ভয়ে বাড়ির লোকজন পলায়ে আছে।
এদিকে দফায় দফায় বাড়িঘরে হামলা, ভাংচুরের ঘটনার পর এলাকায় থমে থমে অবস্থা বিরাজ করছে। যেকোন সময় রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশংকা করছে স্থানীয় সচেতন মহল। দ্রুতই আইনশৃঙ্খলা বাহিনী বিষয়টি এ সমস্যা সমাধানের উদ্যোগ নিয়ে এমনটি আশা করছেন তারা।
এ ব্যাপারে শৈলকুপা থানার এস আই শামীম বলেন, সে দিন আধিপত্য বিস্তার নিয়ে একটু উত্তেজনা সৃষ্টি হয়েছিল। উভয়পক্ষকে শান্ত রাখতে ওসি স্যার নির্দেশ দিয়েছেন। বর্তমানে পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে।

কালিহাতীতে বঙ্গবন্ধু জাতীয় গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের উদ্বোধন

কালিহাতীতে বঙ্গবন্ধু জাতীয় গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের উদ্বোধন

টাংগাইল জেলা প্রতিনিধি: "ক্রীড়াই শক্তি ক্রীড়াই বল, মাদক ছেড়ে খেলতে চল" শ্লোগানে টাঙ্গাইলের কালিহাতীতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান জাতীয় গোল্ডকাপ (অনুর্ধ্ব ১৭) ফুটবল টুর্নামেন্টের উদ্বোধন করা হয়েছে। 
রবিবার (৩০ মে) বিকেলে কালিহাতী আর.এস সরকারি পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে এ খেলার উদ্বোধন করেন স্থানীয় সংসদ সদস্য আলহাজ্ব হাছান ইমাম খান সোহেল হাজারী।
যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের সহযোগিতায় কালিহাতী উপজেলা প্রশাসন এ টুর্নামেন্টের আয়োজন করেন।
উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপজেলা নির্বাহী অফিসার রুমানা তানজিন অন্তরা'র সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আনছার আলী বি.কম, উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মোজহারুল ইসলাম তালুকদার, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আখতারুজ্জামান, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) কামরুল হাসান, কালিহাতী আর.এস সরকারি পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মিজানুর রহমান তালুকদার, নাগবাড়ী ইউপি চেয়ারম্যান মাকসুদুর রহমান সিদ্দিকী মিল্টন, বীরবাসিন্দা ইউপি চেয়ারম্যান ছোহরাব আলী, পারখী ইউপি চেয়ারম্যান লিয়াকত আলী তালুকদার, উপজেলা প্রকৌশলী জহির মেহেদী হাসান, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা সেহাব উদ্দিন, উপজেলা শিক্ষা অফিসার আমিরুল ইসলাম, উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা শিল্পী দে সহ বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তাগণ। 
উদ্বোধনী দিনের খেলায় অংশগ্রহণ করেন এলেঙ্গা পৌরসভা বনাম নাগবাড়ী ইউনিয়ন এবং কালিহাতী পৌরসভা বনাম পারখী ইউনিয়ন।

মোংলায় করোনায় আরও একজনের মৃত্যু, সংক্রমন ঠেকাতে চলছে কঠোর বিধি নিষেধ

মোংলায় করোনায় আরও একজনের মৃত্যু, সংক্রমন ঠেকাতে চলছে কঠোর বিধি নিষেধ

মোঃএরশাদ হোসেন রনি, মোংলাঃ করোনার সংক্রমন বেড়ে যাওয়ায় ৮ দিনের কঠোর বিধিনিষেধ চলছে মোংলায়।  রবিবার (৩০) মে সকাল থেকে শুরু হওয়া কঠোর বিধি নিষেধয়ের ফলে  ঔষধ ও নিত্য প্রয়েজনীয় দোকান ব্যাতিত মোংলা পৌর শহরের সকল দোকান পাট বন্ধ রয়েছে।  শহরের প্রবেশের চারটি প্রবেশ পথে বসানো হয়েছে পুলিশি চেকপোস্ট। বিনা প্রয়োজনে কাউকে শহরে প্রবেশ করতে দেয়া হচ্ছেনা। এছাড়া পুলিশের কয়েকটি মোবাইলটিম শহরের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক গুলোতে দায়িত্ব পালন করছে।  মোংলা থানার সেকেন্ড অফিসার মোঃ জাহাঙ্গীর আলম জানান, স্থানীয় প্রশাসন কতৃক আরোপিত বিধি নিষেধ বাস্তবায়নে কঠোর অবস্থানে রয়েছে পুলিশ। 
এ ছাড়া বিধি নিষেধ অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে শহরের বিভিন্ন  পয়েন্টে মোবাইল কোটের মাধ্যমে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করেছে নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট।  মোংলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কমলেশ মজুমদার জানান, চলমান বিধি নিষেধে করোনায় আক্রান্তের হার না কমলে সামনে আরো কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে। এদিকে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মোংলায় মোঃ নুর উদ্দিন (৪২) নামে আরও একজনের মৃত্যু হয়েছে। আজ রোববার সকাল ৯টায় খুলনার একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। 

মৃত নুর উদ্দিন পৌর শহরের মুসলিমপাড়া এলাকার মৃত কামাল উদ্দিনের ছেলে। তার স্ত্রী মোংলা সরকারি কলেজের প্রভাষক মমতাজ বেগমও করোনা আক্রান্ত হয়ে খুলনার একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।  

এর আগে গত সপ্তাহে পৌর শহরের ভাসানী সড়কের বাসিন্দা কাজী সাত্তার (৯০) করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেন।উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এর হিসাব মতে, গেল ১৮ মে থেকে ২৯ মে পর্যন্ত ১২ দিনে পাঁচ দফায় ১২৮ জনের করোনা পরিক্ষায় ৮১ জনের শরিরে করোনা পজিটিভ হয়। পরিসংক্যান মোতাবেক আক্রান্তের হার ৬২ শতাংশ।

চৌহালীর এডভোকেট কর্ণেল হুমায়ুন কবির গ্রেফতার

চৌহালীর এডভোকেট কর্ণেল হুমায়ুন কবির গ্রেফতার

মোঃ শাকিল আহমেদ, বিশেষ প্রতিনিধিঃ বাংলাদেশ সমাজ উন্নয়ন পার্টির (বিএসডিপি) প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান এ্যডভোকেট হুমায়ুন কবির ওরফে কর্ণেল হুমায়ুনকে সিরাজগঞ্জের চৌহালী থানা পুলিশ গ্রেফতার করেছে। তার বিরুদ্ধে চৌহালী থানায় চেক জালিয়াতি, সাজা ও জিআরসহ ৫টি মামলা রয়েছে। রোববার সকালে তাকে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়।

পুলিশ ও স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, চৌহালী উপজেলার মিটুয়ানী গ্রামের মৃত আব্দুস ছাত্তারের ছেলে হুমায়ুন কবির। তিনি আইন পেশায় (উকিল) থাকলেও ডাক নাম কর্ণেল। কয়েকটি রাজনৈতিক দল পরিবর্তন করে সবশেষ নিজেই তিনি বাংলাদেশ সমাজ উন্নয়ন পার্টি (বিএসডিপি) প্রতিষ্ঠাতা করেন। বর্তমানে তিনি পার্টির চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করছেন।

এই সুবাদে বিভিন্ন রাষ্ট্রদুত সহ গুরুত্বপূর্ন স্থানে তার যাতায়াত ছিল। এছাড়া বিভিন্ন লোকজনের কাছ থেকে চেক ও চাকরির প্রলোভন দেখিয়ে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নেয়। এসব মামলায় পরায়ানাভুক্ত হয়ে তিনি দীর্ঘ দিন ধরে আত্মগোপনে ছিলেন। ২০০৮ সালে চৌহালী উপজেলা পরিষদের নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে অংশ নেন। এছাড়া তার বিরুদ্ধে প্রতারণা করে একাধিক বিয়ের অভিযোগ রয়েছে।

এ বিষয়ে চৌহালী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) রফিকুল ইসলাম জানান, হুমায়ুন কবির কর্ণেল এর বিরুদ্ধে চেক জালিয়াতি, সাজা ও জিআর মামলায় গ্রেফতারী পরোয়ানা জারি ছিল। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শনিবার বিকেলের দিকে কুষ্টিয়া জেলার দৌলতপুর থানাধীন বডুঘান্দিয়া বাজার এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করা হয়। সে এলাকায় প্রতারক হিসেবে পরিচিত।

সিরাজগঞ্জের সদর রতনকান্দি ইউনিয়ন পরিষদের ২০২১-২২ অর্থ বছরের উন্মুক্ত বাজেট সভা অনুষ্ঠিত

সিরাজগঞ্জের সদর রতনকান্দি  ইউনিয়ন পরিষদের ২০২১-২২ অর্থ বছরের উন্মুক্ত বাজেট সভা অনুষ্ঠিত

মাসুদ রানা সিরাজগঞ্জে জেলাপ্রতিনিধিঃসিরাজগঞ্জের সদর রতনকান্দি  ইউনিয়ন পরিষদের ২০২১-২২ অর্থ বছরের উন্মুক্ত বাজেট সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। ৩০মে  রবি বার অএ পরিষদ মিলনায়তনে  অনুষ্ঠিত বাজেট সভায় সভাপতিত্ব করেন  রতনকান্দি  ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন।
 
 এসময় তিনি গত ২০২০-২১ অর্থবছরের রাজস্ব ও উন্নয়ন প্রকল্পের বিবরণী তুলে ধরেনএবং ২০২১-২২অর্থ বছরের বাজেট পেশ করেন। অএ ইউনিয়নে ২০২১-২২ অর্থবছরের বাজেটে রাজস্ব এবং উন্নয়নসহ মোট সম্ভাব্য আয় ধরা হয় ২কোটি ০৮লাখ ৩৩ হাজার ৯৪৮টাকা ও ব্যয় ধরা হয় ২ কোটি ০৪লাখ ৮৯হাজার ৯৮১টাকা। বাজেটে উদ্বৃত্ত দেখানো হয় ৩ হাজার ৪৩শত৯৬৭ টাকা।
এ সময় আর ও উপস্থিত ছিলেন  ইউনিয়ন ইউপি সচিব মাহবুর  রহমান, স্থানীয় রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব , শিক্ষক, কৃষক, ব্যবসায়ী, ইউপি সদস্যসহ জনসাধারণ এ সময় উপস্থিত ছিলেন। উল্লেখ যে   অনুষ্ঠানটি ছিল  অংশগ্রহণ মূলক কর্মপরিকল্পনা প্রনয়ন, স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতামুলক।অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন ইউ পি সদস্য এমদাদুল হক হীরন।

সিলেট নগরবাসীর জন্য সর্তকবার্তা - গুজবে কান দিবেন না

সিলেট নগরবাসীর জন্য সর্তকবার্তা - গুজবে কান দিবেন না

নিউজ ডেস্কঃ  সিলেট নগরবাসীর জন্য সর্তকবার্তা, গুজবে কান দিবেন না। ভুমিকম্পে সর্তক থাকার জন্য সিলেট নগরবাসীকে আহবান জানালেন সিলেট সিটি কর্পোরেশন মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী। ভুমিকম্পকে যারা শেভরন কোম্পানির মাইন বিস্ফোরণ ঘটানোর কারন ব্যাখা করে জনমনে গুজব ছড়ানোসহ অপপ্রচার চালিয়ে যাচ্ছেন সম্পুর্ন বানোয়াট ও গুজব।

সিলেটে বারবার ভুমিকম্পের কম্পন নিয়ে যারা বলছেন শেভরন কোম্পানি নাকি মাইন বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে বলে গুজব ছড়াচ্ছেন তা আদৌ সত্য নয় এব্যাপারে সিলেট সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী জানান,আমরা শেভরন কোম্পানি কে তলব করেছি তারা জানিয়েছেন আমরা এধরনের কোন মাইন বিস্ফোরণ ঘটাই নি। এর থেকে নিশ্চিত হওয়া গেছে গতকাল থেকে আজ পর্যন্ত যতবার ভূ-কম্পনের আভাস পাওয়া গেছে তা সত্যি ভুমিকম্প হয়েছে। 

তিনি আরো বলেন শেভরন কোম্পানি মাইন বিস্ফোরণের  কথা বলে  যে বা যাহারা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকসহ নানান ভাবে গুজব  ছড়াচ্ছেন তাদের বিরুদ্ধে সাইবার নিরাপত্তা আইনে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।এররকম দুর্যোগে জনমনে আতংক না ছড়িয়ে আসন্ন দুর্যোগ মোকাবিলা করতে সিলেটবাসী,সকল প্রিন্ট-ইলেক্ট্রনিক মিডিয়াসহ সকলকে সঠিক তথ্য সংগ্রহ ও উপস্থাপন করার প্রতিও আহবান জানান। 


নওগাঁর আত্রাইয়ে এক প্রাথমিক বিদ্যালয়ে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে চলছে কার্যক্রম

 নওগাঁর আত্রাইয়ে এক প্রাথমিক বিদ্যালয়ে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে চলছে কার্যক্রম

মোঃ ফিরোজ হোসাইনরাজশাহী ব্যুরো 

নওগাঁর আত্রাই উপজেলাধীন ৩০ নং গুড়নই সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে চার কক্ষ বিশিষ্ট একতলা ভবনে জীবনের ঝঁুকি নিয়ে চলছে কার্যক্রম। গত ১৮৬০ খ্রিস্টাব্দে স্থাপিত হয়ে সরকারী ভাবে আনুমানিক ১৯৫০ সনে একটি ভবন নির্মিত হয় এ বিদ্যালয়ে। দীর্ঘ সময় অতিবাহিত হওয়ায় সিমেন্টের টেম্পার কমে গিয়ে প্রতিনিয়ত ছাদের পলেস্তা এবং দেয়ালের প্লাষ্টার ভেঙ্গে পরছে। এতে যে কোন সময় বড় রকম দুর্ঘটনা ঘটতে পারে বলে প্রধান শিক্ষক নূর জাহান খাতুন আশংকা করছেন। 
সরেজমিনে জানা যায়, আত্রাই উপজেলাধীন গুড়নই গ্রামে গোড় নদী সংলগ্ন ১৮৬০ সনে এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তি বর্গের সহযোগিতায় প্রাথমিক বিদ্যালয়টি স্থাপিত হয়। এতে আনুমানিক ১৯৫০ সনে চার কক্ষ বিশিষ্ট একতলা ভবন নির্মিত হয়। এরপর তিন কক্ষের একতলা দুটি ভবন নির্মিত হয়। বিদ্যালয়ে সাতটি কক্ষের মধ্যে চারটি কক্ষে ছাদের পলেস্তা প্রতিনিয়ত ভেঙ্গে পরছে। করোনা মহামারির প্রভাব কমে এলে বিদ্যালয় খুলে দেয়ার ঘোষণায় ঝঁুকিপূর্ণ ভবনে পাঠদান নিয়ে উৎকন্ঠায় আছেন এক'শ উননব্বই শিক্ষার্থীর অভিভাবক ও সাত জন শিক্ষক মন্ডলী। এছাড়া গত বছর বন্যায় বিদ্যালয়ের তিনটি গাছ নদীগর্ভে বিলিন হয়ে মূল ভবনের সাথে নদী এসে লেগে গেছে। অতিদ্রুত নদীভাঙ্গন রোধের পদক্ষেপ না নিলে ভবনটি নদীগর্ভে বিলিন হয়ে যেতে পারে বলে এলাকার লোকজন মনে করেন।
ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি জহুরুল ইসলাম বলেন, অভিজ্ঞ শিক্ষক মন্ডলী দ্বারা বিদ্যালয়ের পাঠদান ও অন্যান্য কার্যক্রম সুচারু ভাবে পরিচালিত হয়ে আসছে। বিদ্যালয়ের পুরাতন ঝঁুকিপূর্ণ ভবনটি ভেঙ্গে নতুন ভবন নির্মাণে অনুরোধ জানান তিনি।
প্রধান শিক্ষক নূর জাহান খাতুন বলেন, জরাজীর্ন ঘরে জীবনের ঝঁুকি নিয়ে বিদ্যালয়ের কার্যক্রম চালাতে হচ্ছে। কেননা মোট সাতটি ঘরের মধ্যে চারটি ঘর ভংগুর অবস্থা বিরাজ করছে। আবার বর্ষা মৌসুমে নদী ভাঙ্গনের ফলে মূল ভবনটি নদীগর্ভে বিলিনের সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। নতুন ভবন নির্মাণ এবং নদীগর্ভে বিলিনের হাত থেকে রক্ষার্থে উর্ধতন কর্তৃপক্ষের সুদৃষ্টি কামনা করেন তিনি।
উপজেলা প্রকৌশলী পারভেজ নেওয়াজ খান বলেন, করোনা মহামারির মধ্যেও বিদ্যালয়ে সংস্কার মেরামত এবং আধুনিক ভবন নির্মাণ কার্যক্রম চলমান আছে। আগামীতে অগ্রাধিকারের ভিত্তিতে এ বিদ্যালয়ে ভবন নির্মাণ কার্যক্রম করা হবে।

বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্র মজলিসেরর উদ্যোগে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার দাবিতে গণস্বাক্ষর অভিযান

বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্র মজলিসেরর  উদ্যোগে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার দাবিতে গণস্বাক্ষর অভিযান

ডা.এম.এ.মান্নান নিজস্ব প্রতিবেদক:যথাযথ স্বাস্থ্য সুরক্ষার পরিবেশ নিশ্চিত করে সকল ধরনের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার দাবিতে বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্র মজলিস ঢাকা মহানগরী দক্ষিণ শাখার উদ্যোগে শিক্ষক,শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের  স্বাক্ষর সংগ্রহ কার্যক্রম শুরু হয়।

আজ ২৯ মে ২০২১, সকাল ১১ টায়  ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি  থেকে এই কার্যক্রমের উদ্বোধন করা হয়। কর্মসূচির উদ্বোধন করেন বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্র মজলিসের কেন্দ্রীয় সভাপতি মেধাবী ছাত্রনেতা মুহাম্মাদ মনির হোসাইন।

বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্র মজলিস ঢাকা মহানগরী দক্ষিণ সভাপতি কে এম ইমরান হুসাইন এর সভাপতিত্বে এবং সেক্রেটারি আহসান আহমদ খান এর পরিচালনায়  স্বাক্ষর কর্মসূচি উদ্বোধনকালে বক্তব্য রাখেন সংগঠনের কেন্দ্রীয় বায়তুলমাল সম্পাদক আফজাল হোসাইন কামিল, কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি পরিষদ সদস্য ও ঢাকা মহানগরী উত্তর সভাপতি মুহাম্মদ ইসমাইল খন্দকার,  সাবেক ছাত্র নেতা মুহাম্মদ খালেদ সানোয়ার, ঢাকা মহানগরী উত্তর বায়তুলমাল সম্পাদক মাহমুদুল হাসান রাসেল।

উদ্বোধনী বক্তব্যে কেন্দ্রীয় সভাপতি বলেন, করোনাকালে লকডাউন চলাবস্থায়ও সরকার সকল প্রকার অফিস, আদালত, কল কারখানা, গার্মেন্টস ফ্যাক্টরী ও যানবাহন চলাচলের অনুমতি দিয়েছে কিন্তু কোন এক অজানা কারণে সকল প্রকারের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রেখেছে।  বারবার শিক্ষার্থীদের প্রতিশ্রুতি দিয়েও আশাহত করেছে।  শিক্ষা প্রতিষ্ঠান দীর্ঘদিন বন্ধ থাকার ফলে শিক্ষার্থীরা ঝরে পড়ছে। 

তিনি আরো বলেন, বেসরকারী গবেষণায় দেখা গেছে, ইতোমধ্যে  প্রায় ৪০% শিক্ষার্থী ঝরে পড়েছে। তাই অনতিবিলম্বে সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার জোর দাবি জানান।এ সময় তিনি শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের স্বাক্ষর সংগ্রহের মত কর্মসূচির মাধ্যমে তাদের সাথে ছাত্র সংগঠনগুলোর সম্পৃক্ততা গড়ে তোলার আহ্বান জানান। 

 তিনি আরো বলেন, ছাত্র মজলিসের স্বাক্ষর সংগ্রহ অভিযানের সাথে সকল  শিক্ষক-শিক্ষার্থী  ও অভিভাবকবৃন্দের পূর্ণ সমর্থন রয়েছে। ছাত্র মজলিসের স্বাক্ষর সংগ্রহ কর্মসূচির মাধ্যমে শিক্ষক-শিক্ষার্থী-অভিভাবকদের ঐক্যবদ্ধ করে আন্দোলন জোরদার করবে।"উল্লেখ্য ছাত্র মজলিস শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার দাবিতে বিভিন্ন কর্মসূচি ঘোষণা করেছে।
 এরই ধারাহিকতায় গত ২৭ ও ২৮ মে সারাদেশের বিভিন্ন মহানগর, জেলা, শহর ও উপজেলায় মানববন্ধন কর্মসুচি পালন করে।

২৯ মে ২০২১ থেকে ৮ জুন ২০২১ পর্যন্ত দেশব্যাপী শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের স্বাক্ষর সংগ্রহ অভিযান চলমান থাকবে।১০ জুন ২০২১, শিক্ষা মন্ত্রনালয় অভিমুখে পদযাত্রা ও শিক্ষামন্ত্রীর নিকট শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের স্বাক্ষর হস্তান্তর।

আশাশুনির খাজরায় আ’লীগ সভাপতি অহিদুলের নেতৃত্বে বাঁধ নির্মান কাজ সম্পন্ন

আশাশুনির খাজরায় আ’লীগ সভাপতি অহিদুলের নেতৃত্বে বাঁধ নির্মান কাজ সম্পন্ন

আহসান উল্লাহ বাবলু আশাশুনি সাতক্ষীরা প্রতিনিধি: আশাশুনি উপজেলার খাজরা ইউনিয়নে ঘূর্ণিঝড় ইয়াসের তান্ডবে ভেঙ্গে যাওয়া বেড়ী বাঁধের নির্মান কাজ ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি ও ইউপি চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী অহিদুল ইসলাম মােল্যার নেতৃত্বে সম্পন্ন হয়েছে। ফলে এলাকার মানুষ সম্ভাব্য ক্ষয়ক্ষতি ও দুর্দশার হাত থেকে রক্ষা পেয়েছে।

ঘূর্ণিঝড় ইয়াসের প্রভাবে নদীর পানি ব্যাপক ভাবে বৃদ্ধি পাওয়ায় ইউনিয়নের বহু স্হানে পাউবাে'র বেড়ী বাঁধ ওভারফ্লাে হয়ে ও বাঁধ ভেঙ্গে এলাকা প্লাবিত হয়। তাৎক্ষণিক ভাবে বাঁধ রক্ষার কাজ করার কােন বিকল্প ছিলনা।এসময় ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি ও ইউপি চেয়ারম্যান প্রার্থী অহিদুল ইসলাম মােল্যা জানান, এলাকার মানুষের কথা চিন্তা করে মানুষের জানমাল রক্ষার্থে এলাকার মানুষকে ঐক্যবদ্ধ করে নিজস্ব অর্থায়নে ও প্রশাসনের সহযােগিতায় ভাঙ্গন কবলিত বাঁধ নির্মাণ করতে সক্ষম হয়েছি। এ সময় সাবেক চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ নেতা রুহুল কুদ্দুস, কামাল হােসেনসহ এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গকে সাথে নিয়ে সর্বস্তরের মানুষের সার্বিক সহায়তায় আটকানো সম্ভব হয়েছে। 

সকলকে সাথে নিয়ে এরপর তুয়ারডাঙ্গার ৩০ ফুট ভাঙ্গন নিজ অর্থ ২৫০টি বাঁশ, ৫০০০ বস্তা ও সরকারি ২০০০ বস্তায় মাটি ভরে প্রায় দেড় হাজার মানুষ কাজে লাগিয়ে বাঁধ রক্ষার কাজ শেষ করা হয়। গদাইপুর গ্রামের আধা কিঃমিঃ বাঁধ ওভারফ্লাে হয়ে পানি ঢুকেছিল। সেখানে ৩ হাত তলা, ২ হাত মাথা ও ৩ ফুট উচু করে এবং ৩০০ বস্তা কাজ লাগিয়ে সহস্রাধিক মানুষকে দিয়ে মাটির কাজ করানো হয়। সম্পূর্ণ নিজ অর্থে তিনি এ কাজ সম্পন করেন। গত বছরও তুয়ারডাঙ্গা গেটের কাছ থেকে গদাইপুর পর্যন্ত কাজ করিয়ছিলেন। একই সাথে চেউটিয়া খেয়াঘাটের কাছে বাঁধ ভেঙ্গে ভিতরে পানি ঢুকছিল। ভাঙ্গন রােধে ৫ শতাধিক মানুষ কাজ লাগিয়ে ৭০০ বস্তায় মাটি ভরে বাঁধ রক্ষার কাজ সম্পন্ন করা হয়েছে। খাজরায় দুই পয়েন্টে (২০ ফুট ও ১০ ফুট) বাঁধ ভেঙ্গে লােকালয়ে পানি ঢুকছিল। সেখানে ৩ সহস্রাধিক মানুষকে কাজে লাগিয়ে বহুদূর হতে মাটি এনে ২০০০ বস্তায় মাটি ভরে ভাঙ্গন রক্ষার কাজ শেষ করা হয়েছে। এছাড়া পিরাজপুর, মনিপুর স্লুইস গেটের কাজ নিজ অর্থে ৩০০০ বস্তায় মাটি ভরে ২ সহস্রাধিক মানুষ কাজে লাগিয়ে বাঁধ রক্ষার কাজ করা হয়েছে। তিনি যেন (অহিদুল ইসলাম) এভাবে এলাকার মানুষের কল্যাণে কাজ করে যেতে পারেন সে জন্য সকলের সহযােগিতা ও সমর্থন কামনা করেন।

বাংলাদেশ আ`লীগ বগুড়া জেলা শাখার কার্যনির্বাহী কমিটির সভা রোববার

বাংলাদেশ আ`লীগ বগুড়া জেলা শাখার কার্যনির্বাহী কমিটির সভা রোববার

বগুড়া প্রতিনিধিঃ মোঃ সবুজ মিয়া: আগামী রোববার বিকাল ৪ ঘটিকায় টেম্পল রোড দলীয় কার্যালয়ে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ বগুড়া জেলা শাখার কার্যনির্বাহী কমিটির সভা অনুষ্ঠিত হবে। উক্ত সভায় বগুড়া জেলা আওয়ামী লীগের সম্মানিত নেতৃবৃন্দকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে উপস্থিত হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন বগুড়া জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মুজিবুর রহমান মজনু সাধারণ সম্পাদক রাগেবুল আহসান রিপু।

৭৩৭ গুণ বাজেট মৌলিক অধিকার দিতে ব্যর্থ : মোমিন মেহেদী

৭৩৭ গুণ বাজেট মৌলিক অধিকার দিতে ব্যর্থ : মোমিন মেহেদী

প্রেস বিজ্ঞপ্তি: নতুনধারা বাংলাদেশ এনডিবির চেয়ারম্যান মোমিন মেহেদী বলেছেন, ৭৩৭ গুণ বাজেট বাড়লেও মৌলিক অধিকার দিতে ব্যর্থ হবে যদি দেশে সততার রাজনীতি-অর্থনীতি-শিক্ষা-সংস্কৃতি প্রতিষ্ঠা না হয়। আর তাই চাই, সবার আগে মানুষের মানবিক মূল্যবোধ বৃদ্ধি। ২৯ মে বিকেল ৪ টায় তোপখানা রোডস্থ কার্যালয়ে '৫০ বছরের বাজেট ও বাস্তবায়ন' শীর্ষক আলোচনা সভায় তিনি উপরোক্ত কথা বলেন। এসময় প্রেসিডিয়াম মেম্বার বীর মুক্তিযোদ্ধা ফজলুল হক, সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান শান্তা ফারজানা, ভাইস চেয়ারম্যান নাহিদ হাসান চৌধুরী, ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব নিপুন মিস্ত্রী, জোবায়ের মাতুব্বর প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

এসময় নেতৃবৃন্দ আরো বলেন, প্রতিদিন নীতিহীন মানুষদের কারণে কোটি কোটি টাকা পাচার হচ্ছে। যা প্রতিরোধে কোন ব্যবস্থা নেই, কেবল লুটপাটের ও পাচারের সুযোগ বাড়াচ্ছে সরকার। এসব দুর্নীতি প্রতিহত করার জন্য নতুন প্রজন্মের প্রতিনিধিদেরকে এখনই ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।

প্রেস ইউনিটি ময়মনসিংহ শাখার সমন্বয়ক হলেন মিন্টু

প্রেস ইউনিটি ময়মনসিংহ শাখার সমন্বয়ক হলেন মিন্টু

প্রেস বিজ্ঞপ্তি: অনলাইন প্রেস ইউনিটি ময়মনসিংহ জেলা শাখার সমন্বয়ক মনোনীত হয়েছেন অনিন্দ্য বাংলা'র সম্পাদক মজিবুর রহমান মিন্টু। আগামী ১ মাসের মধ্যে ময়মনসিংহ জেলার সকল উপজেলা শাখা কমিটি গঠনের লক্ষ্যে ২৮ মে ২০২১ তাঁকে এই বিশেষ দায়িত্ব প্রদান করেন অনলাইন প্রেস ইউনিটির কার্যকরী সভাপতি এ্যাড. নূরনবী পাটোয়ারী, সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান শান্তা ফারজানা এবং ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব পলাশ ভৌমিক। ময়মনসিংহ জেলার যে কোন আগ্রহী সংবাদযোদ্ধা বায়ান্নকে প্রেরণা-একাত্তরকে চেতনা এবং সকল জাতীয় বীরের প্রতি যথাযথ সম্মান প্রদর্শনের মধ্য দিয়ে অবাধ-সুষ্ঠু-সংবাদপ্রবাহ নির্মাণের পাশাপাশি সাংবাদিক ও সংবাদপত্রের অধিকার আদায়ের লক্ষ্যে অনলাইন প্রেস ইফনিটির গর্বিত সদস্য হতে ০১৭১১-১৬১৫৬৭ নম্বরে যোগাযোগের আহবান জানানো হয়েছে।  

উল্লেখ্য, সংবাদপত্র ও সংবাদযোদ্ধাদের অধিকার আদায়ের লক্ষ্যে ২০০৯ সালে ঢাকা বিশ^বিদ্যালয়ের টিএসসিতে মোমিন মেহেদীর সভাপতিত্বে শতাধিক অনলাইন এক্টিভিটিস্ট ও সংবাদযোদ্ধাদের অংশগ্রহণে আনুষ্ঠানিকভাবে আত্মপ্রকাশ করে অনলাইন প্রেস ইউনিটি। দেশের বিভিন্ন জেলা উপজেলায় কর্মরত আগ্রহী সংবাদযোদ্ধাগণ সদস্য হতে নাম-ঠিকানা-কর্মস্থলের নাম লিখে ০১৭৯৫৫৬৮১৩৭ নম্বরে এসএমএস করলে ফিরতি কলে সদস্য নিশ্চিত করা হবে

আশাশুনির আনুলিয়ার ইউপি চেয়ারম্যানের নেতৃত্বে ২ কিঃমিঃ বেড়িবাঁধ নির্মান সম্পন্ন

আশাশুনির আনুলিয়ার ইউপি চেয়ারম্যানের নেতৃত্বে ২ কিঃমিঃ বেড়িবাঁধ নির্মান সম্পন্ন

আহসান উল্লাহ বাবলু আশাশুনি  সাতক্ষীরা  প্রতিনিধি: ঘূর্ণিঝড় ইয়াসের আঘাতে ক্ষতিগ্রস্থ আশাশুনি উপজেলার আনুলিয়া ইউনিয়নের নাংলা থেকে গোকুলনগর পর্যন্ত দুই কিলোমিটার বেড়িবাঁধ স্বেচ্ছাশ্রমের ভিত্তিতে রিংবাঁধ এর সম্পন্ন হয়েছে। আনুলিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আলমগীর আলম লিটনের নেতৃত্বে শুক্রবার (২৮মে) দিনভর কাজ শেষে কাজের শেষ হয়। 

প্রায় ৫/৭ হাজার মানুষ প্রাণপণ চেষ্টা করে স্বেচ্ছাশ্রমের ভিত্তিতে রিংবাঁধ দিয়ে পানি আটকানোর কাজ সম্পন্ন করেন। ইউপি চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি আলমগীর আলম লিটন জানান, গত বুধবার ঘূর্ণিঝড় ইয়াসের আঘাতে ও নদীতে পানি বৃদ্ধি পেয়ে নাংলা খেয়াঘাট হতে গোকুলনগর পর্যন্ত দুই কিলোমিটার রাস্তা ২২ স্থানে কপোতাক্ষ নদীর পানিতে ভেসে যেয়ে লোকালয়ে পানি প্রবেশ করে। বৃহস্পতিবার বাঁধটি আটকানোর চেষ্টা করেও ব্যর্থ হয় এলাকাবাসী। শুক্রবার সকালে নিজ অর্থে ৬৬৩ টি বাঁশ ক্রয় ও পানি উন্নয়ন বোর্ডের ৭/৮ হাজার বস্তানিয়ে ভোর থেকেই জনগণকে সাথে নিয়ে বাঁধটি আটকানোর চেষ্টা করি। দুপুরে জোয়ার আগেই রিং বাঁধ সম্পন্ন হলে পানি আটকানো সম্ভব হয়। 

দুপুরে নাংলা খেয়াঘাট এলাকায় সরকারি বরাদ্দকৃত ২ টন চাল ২ শত ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মাঝে ও ৫০ প্যাকেট শুকনো খাবার (শিশু খাদ্য) ৫০ পরিবারের মাঝে বিতরণ করা হয়। শুকনো খাবারের মধ্যে চিনি, সুজি ও দুধ ছিলো। এসময় আশাশুনি উপজেলা ভাইস  সাংবাদিক চেয়ারম্যান অসীম বরণ চক্রবর্তী, আনুলিয় ইউপি চেয়ারম্যান আলমগীর আলম লিটন, ইউপি সদস্য আলমগীর হোসেন, শওকত হোসেন, রফিকুল ইসলাম, সমাজসেবক মফিজুল মোল্যা, আরিফুর ইসলাম বাবু, আব্দুস সুবান মোল্যা, কামাল হোসেন গাজী, আনারুল ইসলাম, লিটন হোসেন প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন।

নগরকান্দায় ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতি গ্রস্তদের মাঝে নগদ অর্থ ও বস্ত্র বিতরণ

নগরকান্দায় ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতি  গ্রস্তদের মাঝে নগদ অর্থ  ও বস্ত্র বিতরণ

ফরিদপুর জেলা প্রতিনিধি:ফরিদপুরের নগরকান্দায় ঘূর্ণিঝড়ে  ক্ষতি গ্রস্ত  পরিবারের মাঝে রিয়া রাথিন গ্রুপের  পক্ষ থেকে  নগদ অর্থ ও  বস্র  করা হয়েছে। রিয়া  গ্রুপে ত্রান তহবিল থেকে শনিবার তালমা ইউনিয়ন ও সালথা  উপজেলার  গ্রটি্ ইউনিয়ন  মোট ১০০ টি পরিবারকে আর্থিক  সহায়তা  ও বস্র  বিতরণ    করা হয়। তার পক্ষ  হতে  মুরব্বিরা উপস্থিত থেকে এ   অর্থ ও বস্র বিতরণ করা হয়।

বুধহাটায় সড়কে মাছ চাষ করলো এলাকাবাসী

বুধহাটায় সড়কে মাছ চাষ করলো এলাকাবাসী

আহসান উল্লাহ বাবলু আশাশুনি সাতক্ষীরা প্রতিনিধি:  আশাশুনি উপজেলার বুধহাটায় বৃষ্টির পানিতে চলাচলের সড়ক খালে পরিনত হওয়ায় জনভোগান্তি চরম আকার ধারণ করেছে। উপায় না পেয়ে বুধহাটা পশ্চিমপাড়া এলাকার বাসিন্দারা সড়কে মাছ চাষ করে প্রতিবাদ জানিয়েছেন। জানাগেছে, এ সড়কটি দিয়ে বুধহাটা পশ্চিম পাড়া ও সাতক্ষীরা সদরের হাবাসপুর গ্রামের সাধারণ মানুষ যাতায়াত করে থাকে। ইতিপূর্বে সড়কটি ইটের সোলিং করা ছিল। পরে পিচের কার্পেটিং সড়কের বাজেট করা হয়। যা বাস্তবায়নে জন্য ডালিম নামের এক ঠিকাদার অনুমতি পান। কিন্তু ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান সড়কের মাটি খুড়ে দুইপাশে দিয়ে সড়কটি খালে পরিনত করে রেখেছেন। ফলে জনভোগান্তি চরম আকারে ধারণ করেছে। বৃষ্টিতে সড়কটিতে পানি জমে গেলে বুধহাটা পশ্চিমপাড়া বাসী সড়কের মধ্যে জমে থাকা পানিতে মাছ চাষ করে প্রতিবাদ জানান। এছাড়াও ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান দ্রুত সংস্কার কাজ শুরু না করলে আগামীতে কঠোর কর্মসূচি পালন করা হবে বলে জানান তারা। সড়ক সংস্কারের বিষয়ে কথা বলার জন্য ঠিকাদার ডালিম হোসেনের মুঠোফোনে একাধিক বার কল করা হলেও তা রিসিভ হয়নি। এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে জাকির হোসেন বলেন, কাদা পানি না মাড়িয়ে বাড়ী থেকে বাইরে বের হওয়া যায় না। ভ্যান বা মোটরসাইকেল কাদার কারণে নিজ বাড়িতে নিয়ে যাওয়া যায় না। ফলে নিরাপত্তাহীন ভাবে বিভিন্ন মানুষের বাড়িতে রাখতে হচ্ছে। এব্যাপারে জানতে চাইলে উপজেলা এলজিইডি প্রকৌশলী আক্তার হোসেন বলেন, ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানকে জনভোগান্তি লাঘবে সড়কে জমে থাকা পানি দ্রুত নিষ্কাশন পূর্বক এক সপ্তাহের মধ্যে কাজ শুরু করার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। নির্দেশনা না মানলে অফিসিয়াল ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এদিকে, সাধারণ মানুষের ভোগান্তি লাঘবে দ্রুত সংস্কার কাজ সম্পন্ন করার ব্যাপারে যথাযথ কর্তৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন এলাকাবাসী।

আশাশুনিতে নিরাপদ মাতৃত্ব দিবস পালিত

আশাশুনিতে নিরাপদ মাতৃত্ব দিবস পালিত

আহসান উল্লাহ বাবলু আশাশুনি সাতক্ষীরা প্রতিনিধি: আশাশুনিতে নিরাপদ মাতৃত্ব দিবস'২১ উপলক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার সকালে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তার কার্যালয়ে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তার ডাঃ সুদেষ্ণা সরকারের সভাপতিত্বে ও সহকারী স্বাস্থ্য পরিদর্শক মোক্তারুজ্জামান স্বপনের সঞ্চালনায় সভায় মেডিকেল অফিসার ডাঃ ফারহানা সুলতানা, ডাঃ সাবরিন মুরশাল, সিনিয়র স্টাফ নার্স কল্পনা রাণী, প্রধান সহকারী রোকনুজ্জামান, স্বাস্থ্য পরিদর্শক (ইনচার্জ) মাহবুবুর রহমান, সাবেক এমটি ইপিই দিলিপ কুমার ঘোষ, পরিসংখ্যান বিদ আঃ খালেক, ক্যাশিয়ার জাহিদুল ইসলাম, এসএসিএমও এনামূল হক প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।