আশাশুনিতে ঘূর্ণিঝড় যশ এর ক্ষতি থেকে রক্ষায় প্রস্তুতি গ্রহণ

আহসান উল্লাহ বাবলু আশাশুনি সাতক্ষীরা প্রতিনিধি: ঘূর্ণিঝড় যশ (ইয়াশ) এর সম্ভাব্য তান্ডবের হাত থেকে এলাকা ও এলাকাবাসীকে রক্ষার্থে আশাশুনি উপজেলায় ব্যাপক প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে। উপজেলা দুর্যোগ ব্যবস্থা কমিটি ও প্রশাসন মিটিং করে এতদ সংক্রান্ত উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশনা মত সকল প্রস্তুতি নিয়েছে। 

আগামী ২৬ বা ২৭ মে ঘুর্ণিঝড় যশ (ইয়াশ) বাংলাদেশের উপকূলবর্তী এলাকায় আঘাত হানতে পারে। সম্ভাব্য দুর্যোগের হাত থেকে আত্মরক্ষার্থে এলাকাবাসীকে সচেতন করা ও প্রয়োজীয় প্রস্তুতি গ্রহন করা হয়েছে। উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা সোহাগ খান জানান, উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নে ২৬টি সাইক্লোন শেল্টার, ৮০টি স্কুল কাম ঘূর্ণিঝড় আশ্রয়ন কেন্দ্র প্রস্তুত রাখা হয়েছে। ১৫১৫ জন সিপিপি ভলেন্টিয়ার ইতিমধ্যে সতর্কতামূলক কার্যক্রম শুরু করেছে। জনগণকে সচেতন করা ও প্রয়োজনীয় সময়ে নিরাপদ স্থানে নেওয়া এবং দুর্যোগকালীন, দুর্যোগ পূর্ববর্তী ও পরবর্তীতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহনে তারা প্রস্তুত রয়েছে। ১১ ইউনিয়নে ১১টি ও আশাশুনি হাসপাতালে একটি মেডিকেল টিম গঠন করা হয়েছে। উপজেলা পরিষদ ভবনে একটি কন্ট্রোল রুম স্থাপন করা হয়েছে। যেকোন প্রয়োজনে ও প্রয়োজনীয় তথ্য সরবরাহ ও যোগাযোগ রক্ষার্থে কন্ট্রোল রুমের মোবাইল নম্বর ০১৭৭৯৫০৯০৩৫, ০১৭০০৭১৭০২১, ০১৭৯০৫৬৩৫৬৯ ও ০১৭৩৬১৮১০৩৮ চালু রাখা হয়েছে। 

সম্ভাব্য দুর্যোগের সময় ও পরবর্তীতে প্রয়োজনে ব্যয় করার জন্য জেলা প্রশাসন আশাশুনি উপজেলার ১১ ইউনিয়নের জন্য ২৫ হাজার টাকা করে বরাদ্দ দিয়েছেন। এছাড়া গো-খাদ্য বাবদ ১ লক্ষ টাকা ও শিশু খাদ্য বাবদ ১ লক্ষ টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। সকল ইউপি চেয়ারম্যানবৃন্দ স্ব স্ব ইউনিয়নে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনার জন্য সতর্কবার্তাসহ বিভিন্ন কার্যক্রম শুরু করেছেন। সিপিপি স্বেচ্ছাসেবকদেরকে সার্বিক দিক নির্দেশনা ও সহযোগিতা দিয়ে যাচ্ছেন। ইউপি সদস্যবৃন্দ স্ব স্ব ওয়ার্ডে পাউবোর বেড়ী বাঁধের অবস্থা সম্পর্কে খোজ খবর নেওয়া ও বাঁধ ভেঙ্গে এলাকা প্লাবিত না হতে পারে সেজন্য সকলকে এগিয়ে আসতে উদ্ধুদ্ধ করে যাচ্ছেন।

শেয়ার করুন

প্রকাশকঃ

অফিসঃ হাজী সিরাজুল ইসলাম সুপার মার্কেট, মোহাম্মদপুর মোড়, ছুটিপুর রোড, ঝিকরগাছা, যশোর।

পূর্ববর্তী প্রকাশনা
পরবর্তী প্রকাশনা