দৌলতপুরের গরু ব্যবসায়ীকে জয়পুরহাটে মারাধর করে টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি // কুষ্টিয়া দৌলতপুরের গরু ব্যবসায়ী     লাউবাড়ীয়া গ্রামের   মৃত নুরাল মন্ডল এর ছেলে সুজন আলী কে জয়পুরহাট গরুর হাট থেকে উঠিয়ে নিয়ে মারাধর করে প্রায় ৩ লক্ষাধীক  টাকা হাতিয়ে নেওয়া অভিযোগ উঠেছে  একই এলাকার পচামাদিয়া গ্রামের   মৃত তফেল মালিথার ছেলে তোফাজ্জেল এর বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে। 

এ বিষয়ে সুজন জানান, আমি গরুর ব্যবসা করি। গরু ক্রয়ের জন্য  গত পাঁচ তারিখ  জয়পুরহাটে যায় সেখানে পৌঁছালে তোফাজ্জেল এর ছেলে সেখানে  চাকুরী করে তাই তার পরিচিত ক্যাডার বাহিনী দিয়ে আমাকে উঠিয়ে নিয়ে আমার কাছে থাকা ছিনতাই করে নেওয়ার চেষ্টা করে।পরে আমার কাছে থাকা ২ লক্ষ ৭৩ হাজার টাকা সহ আমাদের এলাকার গরুর ব্যবসায়ী ও হাটমালিক আমাকে উদ্ধার করে এবং হাট মালিক আমার টাকাটা রেখে দিয়ে আমাকে বাড়িতে পাঠিয়ে দেয়। আমি দৌলতপুরে  বাড়ি ফিরে তোফাজ্জেল এর কাছে টাকার ব্যপারে জানতে গেলে আমাকে আবার মরপিট করে। আমি গরুতর অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হই। বিষয়টি তদন্ত করে বিচার দাবি করছি।এ বিষয়ে একাধিক গরু ব্যবসায়ী ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেন।

এ বিষয়ে জয়পুরহাট গরুর হাট মালিক পরিচালনা কমিটির সদস্য মিলনের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করলে মিলন জানান, দুই পক্ষের হাতাহাতির কারনে টাকাটা আমরা রেখে দিয়েছি। প্রমান অনুসারে যার টাকা তাকে ফিরত দেওয়া হবে।

এ বিষয়ে তোফাজ্জেল হোসেন জানান, আমি সুজনের কাছে টাকা পাই। গ্রামে বসে টাকা নিতে পারিনাই তাই হাট মালিক কে বলে জয়পুরহাট থেকে টাকাটা উদ্ধার করেছি। তার ছেলের বিরুদ্ধ আনা অভিযোগের বিষয়ে তিনি জানান হ্যা আমার ছেলে জয়পুরহাট জেলাতে বি জি বি তে কর্মরত আছে। তবে এই ভাবে কোন ব্যক্তির কাছ থেকে টাকা হাতিয়ে নেওয়া যায় কিনা জানতে চাইলে তিনি সদুত্তর দিতে পারেননি।

শেয়ার করুন

প্রকাশকঃ

অফিসঃ হাজী সিরাজুল ইসলাম সুপার মার্কেট, মোহাম্মদপুর মোড়, ছুটিপুর রোড, ঝিকরগাছা, যশোর।

পূর্ববর্তী প্রকাশনা
পরবর্তী প্রকাশনা