নন্দীগ্রামে ধানক্ষেত থেকে হাত পা বাঁধা অবস্থায় যুবক উদ্ধার


নন্দীগ্রাম বগুড়া প্রতিনিধিঃ বগুড়ার নন্দীগ্রামে ধানক্ষেত থেকে হাত-পা ও মুখ বাঁধা অবস্থায় মোঃ সিরাজুল ইসলাম (২৫) নামে এক যুবককে উদ্ধার করেছে সাধারণ জনতা। উদ্ধারকৃত ব্যক্তি বগুড়ার সোনাতলা উপজেলার শালিকা গ্রামের মোঃ বাবলু ব্যাপারীর ছেলে। এলাকাবাসী জানান, ২১শে নভেম্বর সন্ধ্যা ৭টায় নন্দীগ্রাম পৌর এলাকার কালীকাপুর গ্রাম সংলগ্ন বগুড়া রাজশাহী মহাসড়কের পশ্চিম পার্শে মাঠের ভেতর থেকে চিৎকারের শব্দ শুনে সেখানে ছুটে গিয়ে ধানক্ষেতের ড্রেন থেকে হাত-পা ও মুখ বাঁধা অবস্থায় তাকে উদ্ধার করা হয়েছে। উক্ত বিষয়ে উদ্ধারকৃত ছেলেটি জানান, সে বগুড়া কানছগাড়ী এলাকায় ফাতিমা ফিজিওথেরাপি ক্লিনিকে ম্যানেজারের চাকরি করে। সেই বিকেল ৪টা ১০মিনিটে তার ক্লিনিক থেকে বের হতেই ৩জন ব্যাক্তি ডিবি পরিচয়ে তাকে জঙ্গি সদস্য আখ্যা দিয়ে মোটরসাইকেলে তুলে নিয়ে নন্দীগ্রামের এই জায়গায় এনে হাত-পা ও মুখ বেঁধে জবাই করার মুহূর্তে সে কোন মতে মুখটা একটু খুলে চিৎকার দেয়, তার চিৎকার পথচারী শুনতে পেয়ে তাকে উদ্ধারের জন্য ছুটে আসলে অপহরণকারীরা সেখান থেকে পালিয়ে যায়। উক্ত বিষয়ে নন্দীগ্রাম থানার এসআই সুবোধ চন্দ্র রায়, এসআই রুবেল মিয়া, এসআই চাঁন মিয়া জানান, খবর পেয়ে ছেলেটিকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য স্থানীয় ক্লিনিকে পাঠিয়েছি অপহরণ কারীরা পালিয়ে গেছে, ছেলেটি কাউকে চিনতে পারেনি।


শেয়ার করুন
পূর্ববর্তী পোষ্ট
পরবর্তী পোষ্ট