কুলাউড়ায় ব্যবসায়ী আব্দুল মনাফ এর লাশ উদ্ধার


মোঃরেজাউল ইসলাম শাফি,কুলাউড়া উপজেলা প্রতিনিধিঃমৌলভীবাজার জেলার কুলাউড়া উপজেলার শহরস্থ মিলি প্লাজার স্বনামধন্য ব্যবসায়ী, মনাফ টেলিকম এর স্বত্বাধিকারী ও মোবাইল ইঞ্জিনিয়ার আব্দুল মনাফ নিখোঁজের তিনদিন পর লাশের সন্ধান পাওয়া গেছে।

মঙ্গলবার  (১৫ ডিসেম্বর) রাত ১০ টার দিকে বাড়ির পাশ থেকে মাটিচাপা দেয়া লাশ উদ্ধার করে কুলাউড়া থানা পুলিশ। লাশ উদ্ধারের সময় উপস্থিত ছিলেন  কুলাউড়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এ,কে এম সফি আহমদ সলমান। 

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, গত শনিবার রাতে মনাফ দোকান থেকে বাড়িতে ফিরে না গেলে পরিবারের সদস্যরা খোঁজাখুঁজি শুরু করেন। অনেক খোঁজাখুঁজির পরও তার কোনো সন্ধান না পাওয়ায় পরেরদিন রবিবার বড়ভাই আজির উদ্দিন বাদী হয়ে কুলাউড়া থানায় অভিযোগ করেন।

অপহরণের অভিযোগ করলে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মঙ্গলবার দুপুরে নিহত মনাফের চাচাতো ভাই চান মিয়া, শাহিদ মিয়া, ফজলু মিয়া এবং ফজলু মিয়ার ছেলে ফয়েজ মিয়াকে আটক করে পুলিশ।

পরে থানায় নিয়ে পুলিশ তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করে। তারা ব্যবসায়ী আব্দুল মনাফকে হত্যা পর মাটি চাপা দেবার বিষয়টি স্বীকার করে। পরে পুলিশ তাদের তথ্যের ভিত্তিতে লাশ উদ্ধার করে।জানা যায়, গত শনিবার থেকে খোঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না কুলাউড়ার মিলি প্লাজার মনাফ টেলিকমের স্বত্বাধীকারী আব্দুল মনাফের।

 মনাফের বাড়ি ভুকশিমইল ইউনিয়নের মিরেরশংকর গ্রামে। তিনি মৃত ইয়াকুব আলীর ছেলে। মনাফ গত ১২ ডিসেম্বর রাতে কুলাউড়া শহরের নিজ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান থেকে ফেরার পথে বাড়ির সামনে থেকে নিখোঁজ হন। বাড়িতে ফিরে না গেলে পরিবারের লোকজন উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েন।মনাফের ছোট ভাই মাহবুব আহমেদ সুমন জানান, দীর্ঘ দিন থেকে চাচাত ভাইদের সঙ্গে জমিজমা নিয়ে সমস্যা ছিল। তার ধারণা, চাচাত ভাইয়েরাই মনাফকে হত্যা করে মরদেহ মাটিচাপা দিয়ে রেখেছে।

কুলাউড়া থানার অফিসার ইনচার্জ বিনয় ভূষণ রায় লাশ উদ্ধারের সত্যতা নিশ্চিত করেন বলেন, চাচাত ভাইদের স্বীকারোক্তিতে নিখোঁজ মনাফের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। মরদেহ মৌলভীবাজার ২৫০ শয্যা হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। দোষিদের বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ নেয়া হবে।


শেয়ার করুন
পূর্ববর্তী পোষ্ট
পরবর্তী পোষ্ট