প্রবাসী কল্যাণ ফাউন্ডেশন দেবহাটা উপজেলার এক বছর মেয়াদের নতুন কমিটি গঠন

 প্রবাসী কল্যাণ ফাউন্ডেশন দেবহাটা উপজেলার এক বছর মেয়াদের নতুন কমিটি গঠন

 



আজহারুল ইসলাম সাদী, জেলা প্রতিনিধিঃ


"সকলের তরে সকলেই মোরা" এই শ্লোগান কে সামনে রেখে প্রবাসী কল্যাণ ফ্যাউন্ডেশন দেবহাটা উপজেলার পুর্বের মেয়াদ শেষ হওয়ায়, পুনরায় এক বছর মেয়াদের নতুন কমিটি গঠন করা হয়েছে। 


আমেরিকার প্রবাসী প্রধান উপদেষ্টা, মোঃ সাইফুল ইসলাম ও মালেশিয়া প্রবাসী পরিচালক মোঃ মিঠুন সাহারিয়া শাকিব  স্বাক্ষরিত নতুন কমিটির সদস্যরা হলেনঃ সভাপতি মোঃ রুবেল ইসলাম মালদ্বীপ প্রবাসী,

সহ সভাপতি মোঃ বাপ্পি বিল্লাহ সিঙ্গাপুর প্রবাসী,

সাধারণ সম্পাদক মোঃ রুবেল ইসলাম দক্ষিণ করিয়া প্রবাসী,

সহ সাধারণ সম্পাদক মোঃ আইয়ুব হোসেন সিঙ্গাপুর প্রবাসী,

সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ সাদ্দাম হোসেন মালেশিয়া প্রবাসী,

সহসাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ জসিম মালেশিয়া  প্রবাসী,

সহসাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ আবু মুসা ব্রুনা প্রবাসী,

দপ্তর সম্পাদক মোঃ আজমির হোসেন সিঙ্গাপুর প্রবাসী,

প্রচার সম্পাদক মোঃ আমিরুল ইসলাম মালেশিয়া প্রবাসীসহ মোট ৩৪ সদস্য বিশিষ্ট নতুন কমিটি অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

সরকারের উন্নয়ন প্রচারে সাংবাদিকদের ভূমিকা অপরিসিম

 সরকারের উন্নয়ন প্রচারে সাংবাদিকদের ভূমিকা অপরিসিম




সিপন, নারায়ণগঞ্জ।

নারায়ণগঞ্জের বন্দর থানার নির্মাণাধীন ভবন পরিদর্শন কালে নারায়ণগঞ্জ জেলার সুযোগ্য পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জায়েদুল আলম (পিপিএম) বলেন সরকারের সরকারের উন্নয়নের প্রচারে সাংবাদিকের ভূমিকা অপরিসিম।


চলমান নির্মাণ কাজের অগ্রগতি সন্তোষ জনক প্রকাশ করে পুলিশ সুপার জায়েদুল আলম বলেন, নির্মাণ কাজের গুনগত মান ঠিক রাখতে বারবার তদারকি করা হবে। নির্ধারিত সময়ের মধ্যেই নির্মাণ কাজ সমাপ্ত হবে বলে আশা করেন।সরকারের উন্নয়ন প্রচারে সাংবাদিকদের গুরুত্বপূর্ন ভূমিকা রয়েছে।


উপস্থিত ছিলেন জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মো. মোস্তাফিজুর রহমান, অতিরিক্তি পুলিশ সুপার (সদর দপ্তর) সুবাস, বন্দর থানার অফিসার ইনর্চাজ ফখরুদ্দীন ভূঁইয়া, পুলিশ পরিদর্শক মো. শফিকুল ইসলাম, নির্বাহী প্রকৌশলী জাকির হোসেন, উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী মীর জহিরুল আলম আরেফিন, উপ-সহকারি প্রকৌশলী মো. হাফিজুর রহমান, বন্দর থানার সেকেন্ড অফিসার এসআই আবুল হোসেন হাওলাদার, বন্দর থানার এসআই আনোয়ার হুসাইন, এসআই মাহফুজ রানা, এসআই খায়েরসহ বন্দর থানার অন্যান্য।

হোটেলে কুকুরের মাংস সন্দেহে তুলকালাম কাণ্ড।

হোটেলে কুকুরের মাংস সন্দেহে তুলকালাম কাণ্ড।




সিপন,নারায়ণগঞ্জ। 



নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় হোটেলে কুকুরের মাংসে অভিযোগে দুই যুবককে মারধর করে স্থানীয়রা।দেখা দেয় চরম উত্তেজনা।


তবে পুলিশ বলছে, হোটেলে সরবরাহকৃত মাংসগুলো কুকুরের নয় মহিষের। ভারত থেকে এসব মাংস আমদানি করে হোটেলগুলোতে সরবরাহ করে আসছিল তারা।


গত ২৯ আগস্ট শনিবার  রাত ১টার দিকে সদর উপজেলার ফতুল্লা থানার পাগলা বাজার এলাকা থেকে মাংস সহ দুই যুবককে আটক করা হয়। এ সময় দুই যুবকের কাছ থেকে ৫০ কেজি মাংস উদ্ধার করা হয়। রাতে ফতুল্লার পাগলা বাজারের বিভিন্ন হোটেলে মাংস সরবরাহ করতে গেলে স্থানীয় জনতা কুকুরের মাংস সন্দেহে দুই যুবককে ধরে গণপিটুনি দেন। এ সময় বস্তায় থাকা মাংসগুলো দুই যুবকের মাথায় তুলে দিয়ে ফেসবুকে লাইভ করা হয়। মাংস ভর্তি বস্তা নদীতে ফেলে দেয়ার ঘটনা ফেসবুকে ভাইরাল হলে উত্তেজনার সৃষ্টি হয়।


এলাকাবাসী জানায়, ফতুল্লার পাগলা বাজার এলাকার খাবার হোটেলগুলোতে গরুর মাংসের পরিবর্তে দীর্ঘদিন কুকুরের মাংস রান্না করে খাওয়ানো হয়। একই সঙ্গে কুকুরের মাংসের বিরিয়ানি বিক্রি করা হয়। হোটেলের মালিকরা পাগলা বাজার ও ফতুল্লা থেকে এসব মাংস কিনেন। এ নিয়ে পাগলা বাজার ব্যবসায়ী সমিতিসহ স্থানীয় লোকদের সন্দেহ হয়।রাতে দুই যুবক বস্তায় করে ৫০ কেজি মাংস নিয়ে আসলে তাদের আটক করা হয়। এতো রাতে মাংস আনা হলো কেন তাদের জিজ্ঞেস করলে উত্তর দিতে না পারায় সন্দেহ হয়। পরে তাদের আটক করে মারধর করে পুলিশে দেয়া হয়। সেই সঙ্গে মাংসগুলো ফেলে দেয়া হয়।


ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আসলাম হোসেন বলেন, পাগলা বাজারে কুকুরের মাংস বিক্রি সন্দেহে দুই যুবককে আটক করলে উত্তেজনা দেখা দেয়। সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করতে মাংস সরবরাহকারী দুই যুবককে থানায় নিয়ে আসা হয়। জিজ্ঞাসাবাদে তারা জানায়, তাদের মালিক ভারত থেকে এসব মাংস আমদানি করেছেন। মাংসগুলো বিভিন্ন হোটেলে সরবরাহ করা হয়। একটি মুসলিম দেশের হোটেলগুলোতে কুকুরের মাংস কেন সরবরাহ করবে এমনটি জানায় দুই যুবক। মূলত ভারত থেকে মহিষের মাংস আমদানি করে হোটেলগুলোতে সরবরাহ করছিল তারা। মালিকের কাগজপত্র যাচাই–বাছাই করে তাদের ছেড়ে দেয়া হয়।


তিনি আরও বলেন, ঘটনাটি যেহেতু স্পর্শকাতর তাই পশু বিভাগের কর্মকর্তা কামরুজ্জামানকে জানানো হয়েছে। তিনি সোমবার মাংসগুলো যাচাই করবেন। তবে মহিষের মাংসের পরিবর্তে যদি কুকুরের মাংস হয় হবে কেউ পার পাবে না।

ভারতের সাবেক প্রেসিডেন্ট প্রণব মুখার্জির মৃত্যুতে বুধবার রাষ্ট্রীয় শোক

 ভারতের সাবেক প্রেসিডেন্ট প্রণব মুখার্জির মৃত্যুতে বুধবার রাষ্ট্রীয় শোক



নিউজ ডেস্কঃ    

ভারতের সাবেক রাষ্ট্রপতি, উপমহাদেশের বরেণ্য রাজনীতিক, বাংলাদেশের অকৃত্রিম বন্ধু প্রণব মুখার্জির মৃত্যুতে শ্রদ্ধা জানিয়ে বুধবার এক দিনের রাষ্ট্রীয় শোক পালন করবে বাংলাদেশ।


আজ মঙ্গলবার মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের এক প্রজ্ঞাপনে এ তথ্য জানানো হয়।


এতে বলা হয়, আগামীকাল বাংলাদেশের সব সরকারি, আধা সরকারি ও স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠান ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ সব সরকারি ও বেসরকারি ভবন ও বিদেশস্থ বাংলাদেশ মিশনে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত থাকবে।


এছাড়াও, প্রণব মুখার্জির জন্য বুধবার সংশ্লিষ্ট ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে বিশেষ প্রার্থনার আয়োজন করা হবে।


সোমবার (৩১ আগস্ট) বিকেলে ভারতের রাজধানী দিল্লির সেনা হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি৷

এর আগে, গত ০৯ আগস্ট রাতে প্রণব মুখার্জি বাথরুমে পড়ে যান ভারতের সাবেক এ রাষ্ট্রপতি। পরদিন ১০ আগস্ট সকালে ডান হাত অবশ হতে থাকায় দ্রুত প্রণব মুখোপাধ্যায়কে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়৷ সেখানে চিকিৎসকরা অপারেশনের সিদ্ধান্ত নেন। অপারেশনের আগে করোনা পরীক্ষায় পজিটিভ রিপোর্ট আসে। 

প্রণব মুখার্জির অস্ত্রোপচার হয়। এতে মাথায় জমাট বাঁধা রক্ত বের করা হয়। রাতেই তাঁকে ভেন্টিলেটর সাপোর্টে রাখা হয়৷ ১০ আগস্ট হাসপাতালে ভর্তির আগেও প্রণব মুখার্জি নিজেই টুইট করে জানান, তাঁর করোনা পজিটিভ।


এদিন রাতে চিকিত্‍সায় সাড়া দিলেও ১১ আগস্ট থেকে অবস্থার অবনতি হতে থাকে। রাতে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ বুলেটিনে জানায়, প্রণব মুখোপাধ্যায়ের শারীরিক অবস্থা অত্যন্ত সঙ্কটজনক। তারপর থেকেই তাঁকে ভেন্টিলেশনে রাখা হয়েছিল।


২০১২ থেকে ২০১৭ সাল পর্যন্ত দেশের রাষ্ট্রপতি ছিলেন প্রণব মুখোপাধ্যায়। সে বছর জুলাইয়ে রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে লড়তে চাননি তিনি। বরং রাজনীতি থেকে অবসর নেন। ৫০ বছরেরও বেশি সময় সক্রিয় রাজনীতিতে থাকা প্রণব মুখোপাধ্যায়কে ২০১৯ সালে ভারতের সর্বোচ্চ বেসামরিক সম্মান ভারত রত্নে ভূষিত করা হয়। 

১৯৯৭ সালে তিনি সেরা সাংসদ পুরস্কার পেয়েছিলেন। ২০০৮ সালে পদ্মবিভূষণ সম্মান পান তিনি।

নাগরপুরে বিএনপি ৪২ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত

নাগরপুরে বিএনপি ৪২ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত

 



  ডা.এম.এ.মান্নান

 টাঙ্গাইল জেলা প্রতিনিধি: বাংলাদেশের একটি অন্যতম প্রধান জনপ্রিয় রাজনৈতিক সংগঠন  বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল(বিএনপি)। ১৯৭৮ সালে ১ সেপ্টেম্বরে তৎকালীন রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান প্রতিষ্ঠাতা  করেন।     


 অাজ মংগলবার,১ সেপ্টেম্বর ২০২০ খ্রি. বিএনপির ৪২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে নাগরপুর উপজেলা বিএনপি কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে অালোচনা সভা  ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।


নাগরপুর উপজেলা বিএনপির ভারপ্রাপ্ত অাহবায়ক এম এ সালাম এর সভাপতিত্বে যুগ্ম- অাহবায়ক অাহম্মদ অালী রানা পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন, ভাদ্রা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ হাবিবুর রহমান হাবিব, উপজেলা  বিএনপির সাবেক সাঃ সম্পাঃ মোঃ সেলিম মিয়া, উপজেলা যুবদলের অাহবায়ক মোঃ ফনির হোসেন ভূইয়া, যুগ্ম-অাহবায়ক মোঃ রফিকুল ইসলাম দিপন উপজেলা ছাত্রদলের সভাপতি নজরুল ইসলাম, যুগ্ম অাহবায়ক এলিম মিয়া,উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মোঃ হুমায়ুন কবীর,সাঃ সম্পাঃ অাবুল কাসেম মানিক,উপজেলা ছাত্রদলের সিনিয়র সহ-সভাপতি মোঃ গোলাম মোস্তফা (গোলাম),সাধারন সম্পাদক জিহাদ হোসেন ডিপটি,কলেজ ছাত্রদলের সভাপতি মোঃ জাহিদ হাসান,কলেজ ছাত্রদলের সাধারন সম্পাদক মীর মাহবুর রহমান রাসেল সহ নাগরপুর উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন বিএনপি ও অংগসংগঠনের নেত্ববৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

১১ ম্যাচ পর চাকরি হারালেন কোচ দিয়েগো ফোরলান

১১ ম্যাচ পর চাকরি হারালেন কোচ দিয়েগো ফোরলান




কাজী মোঃ সাজ্জাদ হাসান:স্বদেশী ক্লাব পেনারোলের হয়ে দিয়েগো ফোরলানের খেলোয়াড়ি জীবনের স্মৃতিটা ছিল সুখের। ২০১৫-১৬ মৌসুমে ক্লাবটিকে উরুগুয়ের লিগ ট্রফি উপহার দিয়ে ছিলেন সাবেক এ তারকা ফরওয়ার্ড।


বাল্যকালের সেই ক্লাবটিতেই কোচিং ক্যারিয়ারের সূচনা করে ছিলেন ফোরলান। কিন্তু প্রধান কোচ হিসেবে তার অভিজ্ঞতাটা মোটেই সুখকর হলো না। মাত্র ১১ ম্যাচ পরেই ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড, অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ ও ইন্টার মিলানের সাবেক এ তারকা স্ট্রাইকারকে চাকরি হারাতে হলো।


গত ডিসেম্বরে যোগ দিয়ে ছিলেন ফোরলান। তার অধীনে ১১ ম্যাচ খেলে এফসি পেনারোল জিতেছে মাত্র চারটি। দলের পারফরম্যান্স ভালো না হওয়ায় বরখাস্ত হলেন তিনি।

রেড ক্রিসেন্ট চট্টগ্রামের মাসব্যাপী বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা ক্যাম্প শুরু

রেড ক্রিসেন্ট চট্টগ্রামের মাসব্যাপী  বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা ক্যাম্প শুরু





রিয়াজুল করিম রিজভী

চট্টগ্রাম ব্যুরো প্রধান


নগরীর পাচঁলাইশ থানাধীন শুলকবহর ওয়ার্ডের মুরাদপুর এলাকার মির্জাপুল ডেকোরেশন গলিসহ আশেপাশের এলাকার নন কোভিড রোগীদের বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা পৌছেঁ দেওয়ার লক্ষ্যে ‘ফ্লু কর্ণার ও ইনভেস্টিগেশন সেল’ এর কার্যক্রম শুরু করেছে রেড ক্রিসেন্ট চট্টগ্রাম। বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি চট্টগ্রাম জেলা ও সিটি ইউনিটের উদ্যোগে যুব রেড ক্রিসেন্ট, চট্টগ্রামের বাস্তবায়নে নগরীর মির্জাপুলস্থ ডাঃ শেখ শফিউল আজমের বাসভবনে আজ ১লা সেপ্টেম্বর থেকে মাসব্যাপী বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা ক্যাম্প শুরু করা হয়েছে। এ কার্যক্রমে মেডিসিন বিশেষজ্ঞ, শিশু ও গাইনী চিকিৎসা সেবা এবং সেবাপ্রাপ্তিদের মাঝে বিনামূল্যে ঔষধ বিতরণ করা হচ্ছে। ‘ফ্লু কর্ণার ও ইনভেস্টিগেশন সেল’ কার্যক্রমে বিভিন্ন রোগীদের চিকিৎসা সেবা প্রদান করেন বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির ম্যানেজিং বোর্ড সদস্য ও বাংলাদেশ মেডিক্যাল এসোসিয়েশন কেন্দ্রীয় কমিটির সহ সভাপতি ডা. শেখ শফিউল আজম, ডাঃ শেখ সানজানা শারমিন। যুব রেড ক্রিসেন্ট, চট্টগ্রামের যুব প্রধান মোঃ ইসমাইল হক চৌধুরী ফয়সাল এর নেতৃত্বে কার্যক্রমে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম জেলা ইউনিট লেভেল অফিসার আব্দুর রশিদ খান, যুব রেড ক্রিসেন্ট চট্টগ্রামের স্বাস্থ্য ও সেবা বিভাগীয় প্রধান জনি চৌধুরীসহ কার্যকরী পর্ষদ সদস্য ও যুব স্বেচ্ছাসেবকরা।

সেবা প্রদানকালে ডাঃ শেখ শফিউল আজম স্বেচ্ছাসেবকদের উদ্দেশ্যে বলেন, করোনা পরিস্থিতিতে সকলকে মাস্ক পরিধান করে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে কাজ করতে হবে। রেড ক্রিসেন্ট চট্টগ্রাম করোনা মোকাবেলায় মাঠে শুরু থেকে আছে এবং সামনেও থাকবে।  

উল্লেখ্য যে, আজ থেকে মাসব্যাপী পর্যন্ত মির্জাপুলস্থ ডাঃ শেখ শফিউল আজম এর বাসভবনে নন কোভিড রোগীদের সকাল ১০ ঘটিকা হতে দুপুর ১ ঘটিকা পর্যন্ত চিকিৎসা সেবা প্রদান করা হবে। প্রয়োজনে যোগাযোগ ০১৫৩৭৩০৬৩৬০।

সিরাজগঞ্জ জেলা পুলিশের বিশেষ কল্যাণ সভা অনুষ্ঠিত

 সিরাজগঞ্জ জেলা পুলিশের বিশেষ কল্যাণ সভা অনুষ্ঠিত

 



মাসুদ রানা সিরাজগঞ্জ জেলাপ্রতিনিধিঃ 

আজ মঙ্গলবার ১ সেপ্টেম্বর  

 শহীদ মুক্তিযোদ্ধা আলাউদ্দিন ড্রিলসেড, পুলিশ লাইনস, সিরাজগঞ্জ-এ জেলা পুলিশের স্বাস্থ্যবিধি মেনে বিশেষ কল্যাণ সভা অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত সভায় সভাপতিত্ব করেন জনাব হাসিবুল আলম, বিপিএম, পুলিশ সুপার, সিরাজগঞ্জ। বিশেষ কল্যাণ সভায় তিনি বিভিন্ন দিকনির্দেশনামূলক বক্তব্য প্রদান করেন এবং জেলা পুলিশ ফোর্সের সুযোগ-সুবিধা সংক্রান্ত বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা করা হয় এবং সকল থানার অফিসারদের মধ্য থেকে বিভিন্ন পদবীর অফিসারবৃন্দকে উল্লেখযোগ্য সাফল্যের জন্য পুরস্কৃত করেন। এ সময় মোবাইল এসএমএস এর মাধ্যমে জনসাধারণের জন্য সেবা কার্যক্রমের উদ্বোধন সহ বিভিন্ন থানায় আগত দর্শনার্থীদের আপ্যায়নের জন্য চায়ের কেটলি, টি-ব্যাগ, চিনি সহ চা ও চিনি রাখার পাত্র সকল থানার অফিসার ইনচার্জদের বিতরণ করেন। সবশেষে করোনা ভাইরাসের  সংক্রমণ থেকে নিরাপদ থাকতে সুরক্ষা সামগ্রীর ব‍্যবহারসহ সকল স্বাস্থ্যবিধি মেনে ডিউটি পালনের নির্দেশনা দেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন জনাব মোহাম্মদ শরীফুল হক, কমান্ড্যান্ট, আইটিসি, সিরাজগঞ্জ সহ জেলা পুলিশের অন্যান্য ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ ও স্থানীয় সাংবাদিকবৃন্দ।

হবিগঞ্জে সিনেমার ফাঁসির দৃশ্য দেখাতে গিয়ে শিশুর মৃত্যু, ও পলাতক আসামি গ্রেফতার

হবিগঞ্জে সিনেমার ফাঁসির দৃশ্য দেখাতে গিয়ে শিশুর মৃত্যু, ও পলাতক আসামি গ্রেফতার




 লিটন পাঠান, হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি


হবিগঞ্জ জেলার মাধবপুর উপজেলায় সাত বছরের ৪/৫ জন শিশু মিলে স্টার জলসার অভিনয় করছিল। এমন সময় পুতুলা নামে এক শিশু ঘরের বৈদ্যূতিক পাখায় ওড়না প্যাচিয়ে ফাঁসির অভিনয় দেখাতে গিয়ে পাখার সঙ্গে ওড়নাটি আটকে যায়। মূহুতের মধ্যে পুতুলার করুন মৃত্যু ঘটে। পুতুলা মাধবপুর উপজেলার বাঘাসুরা ইউনিয়নের কালিকাপুর গ্রামের সায়েব আলীর মেয়ে। তার পিতা সায়েব আলী জানান মঙ্গলবার (১-সেপ্টেম্বর) দুপুরে।


পুতুলা বেগম তার সমবয়সি খেলার সাথীদের নিয়ে সিনেমার অভিনয় করছিল। এমন সময় পুতুলা বেগম ফাঁসির দৃশ্য দেখাতে গিয়ে বৈদ্যূতিক পাখার সঙ্গে ওড়না জড়িয়ে যায়। তার সঙ্গের শিশুরা চিৎকার শুরু করলে

পুতুলা কে দ্রুত ডাক্তারের কাছে নিয়ে গেলে কতৃব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষনা করে। মাধবপুর থানার অফিসার ইনজচার্জ (ওসি) মোঃ ইকবাল হোসেন জানান ঘটনাটি খোঁজ খবর নিয়ে দেখা হচ্ছে।


হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলার চৌমুহনী ইউনিয়নের চাঞ্চল্যকর ইদন আলী হত্যা মামলার এজাহারভুক্ত আসামী মোঃ মুক্তার হোসেন (৪০)কে আটক করা হয়েছে। মঙ্গলবার (১-সেপ্টেম্বর) দুপুরে মাধবপুর থানাধীন কাশিমনগর পুলিশ 

ফাঁড়ির ইনচার্জ ইন্সপেক্টর মোরশেদ আলম এর নির্দেশনায় এ এস আই গোলাম মোস্তফা সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে মাধবপুর উপজেলার।


চৌমুহনী ইউনিয়নের কালীকৃষ্ণনগর গ্রামের মৃত নজব আলীর ছেলে মোঃ মুক্তার হোসেন কে তার বসত বাড়ি থেকে আটক করা হয়। কাশিমনগর পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মোরশেদ আলম সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, হবিগঞ্জের ডিবিতে ইদন আলী হত্যা মামলাটি তদন্তাধীন রয়েছে।যার মামলা নং-০৬ আটক পূর্বক আসামি মুক্তার হোসেন কে হবিগঞ্জ ডিবি পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর অঙ্গীকার রুখতে হবে স্বৈরচার

 প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর অঙ্গীকার রুখতে হবে স্বৈরচার



সম্রাট হোসেন, ঝিনাইদ


হ জেলা প্রতিনিধিঃবাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল-বিএনপি'র ৪২ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে ঝিনাইদহ জেলা বিএনপির উদ্যোগে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত।


উক্ত আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন,সাবেক ঝিনাইদহ জেলা জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের সভাপতি ও আইনজীবী সমিতির একাধিকবার নির্বাচিত সভাপতি ও সাধারন সম্পাদক, ঝিনাইদহ জেলা বিএনপি'র আহবায়ক, বীর মুক্তিযোদ্ধা,অধ্যক্ষ, জননেতা এ্যাডঃ এম এম মশিয়ুর রহমান। প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন,ঝিনাইদহ ২ আসনের একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের বিএনপি মনোনীত প্রার্থী, হরিনাকুণ্ডু উপজেলা পরিষদের সাবেক সুযোগ্য সফল চেয়ারম্যান, সাবেক ছাত্রনেতা ও জেলা বিএনপির সদস্য সচিব, জননেতা আলহাজ্ব এ্যাডঃ এম এ মজিদ।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা বি এন পির যুগ্ম আহবায়ক মোঃ আক্তারুজ্জামান, জেলা বিএনপি'র সদস্য ও কেন্দ্রীয় মৎস্যজীবী দলের যুগ্ম আহবায়ক, এ কে এম ওয়াজেদ আলী,ঝিনাইদহ জেলা যুবদলের সংগ্রামী সাধারন সম্পাদক, জেলা বিএনপি'র সদস্য, মোঃ আশরাফুল ইসলাম পিন্টু। সহ বি এন পি ও অঙ্গওসহযোগী সংগঠনের অগনিত সিনিয়র নেতৃবৃন্দ। সভার সভাপতিত্ব করেন,ঝিনাইদহ পৌর বি এন পির সভাপতি ও জেলা বি এন পির যুগ্ম আহবায়ক মোঃ জাহিদুজ্জামান মনা।

পরিচালানা করেন সাবেক ছাত্রনেতা,ঝিনাইদহ সদর উপজেলা বি এন পির সভাপতি ও জেলা বি এন পির যুগ্ম আহবায়ক আলহাজ্ব এ্যাডঃ মুন্সি কামাল আজাদ পান্নু।

আশাশুনির আনুলিয়ায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষে আহত ২

 আশাশুনির আনুলিয়ায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষে আহত ২



আহসান উল্লাহ বাবলু উপজেলা প্রতিনিধিঃ   আশাশুনি উপজেলার আনুলিয়া ইউনিয়নের মির্জাপুরে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে হামলার ঘটনা ঘটেছে। এজাহার সূত্রে জানা গেছে, গতকাল সোমবার বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে মির্জাপুর গ্রামে থেকে মৃত ইসহাক সানার ছেলে রুহুল আমিন সানা (৪৫) ও তার চাচাত ভাই মতিয়ার রহমান সানার ছেলে সাদেকুল ইসলাম (৫৮) একসঙ্গে পাইকপাড়া ফুটবল খেলা মাঠে খেলা দেখতে যেয়ে খেলা না হওয়ায় বাড়ি ফেরার পথে আনুমানিক সন্ধা ৬টার দিকে মির্জাপুর গ্রামের ইউপি সদস‍্য শাহাবুদ্দীন এর বাড়ির সামনে পৌঁছালে ইউপি সদস‍্য শাহাবুদ্দীন ও সাতক্ষীরার আলোচিত বিএনপি নেতা আমান হত্যা মামলার আসামি বিএনপি নেতা মোক্তার হোসেনের নির্দেশে মোসলেম সানা, শাহাদত সানা, হাসান সানা, সিদ্দিক সানা, শাহিনুর সানা, সালাম সানাসহ ১০/১২ জন পরিকল্পিত ভাবে রামদা, চাইনিজ কুড়াল, লোহার রড, শাবল, হাতুড়ি, চাপাতি, কেরেজ বাশের লাঠি ও আধলা ইটসহ দেশীয় অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে তাদের ওপর হামলা চালায়। এসময় স‍্যমস‍্যাং গ্লাক্সি মোবাইল ফোন ও নগদ ১৫০০ টাকা সিন্তাই করে নেয়। এঘটনায় রুহুল আমিন সানা ও সাদেকুল ইসলাম গুরুতর অবস্থায় প্রথমে আশাশুনি হাসপাতালে এরপর চিকিৎসার অবনতি হলে তাৎক্ষণিক সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে স্থায়ীভাবে চিকিৎসার জন‍্য ভর্তি করা হয়েছে তাদের অবস্থা আশংখা জনক। সামনে ইউপি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ইউপি সদস্য শাহাবুদ্দিন ও বিএনপি নেতা মোক্তার হোসেন নাশকতা মামলার আসামি ও সন্ত্রাসীদের নিয়ে একটি রিজাভ বাহিনী গঠন করে এলাকায় সন্ত্রাসের রাজত্ব কায়েমের চেষ্টা করছে। এ বিষয়ে কথা বলার জন্য মুঠো ফোনে শাহাবুদ্দীনের কাছে একাধিকবার যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলেও তিনি ফোন রিসিভ না করায় তার সাথে কথা বলা সম্ভব হয়নি। এলাকায় বর্তমানে চরম উত্তেজনা অবস্থা বিরাজ করছে যেকোনো সময় রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ ঘটার আশঙ্কা রয়েছে। এলাকাবাসী ইউপি সদস্য শাহাবুদ্দিন অমুক ও মোক্তার বাহিনীর সন্ত্রাসীদের হাত থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন। আশাশুনি থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ গোলাম কবির জানান, এ ঘটনায় আমি অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত চলছে তদন্ত শেষে ঘটনা সত‍্যতা প্রমানিত হলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

মহেশপুরে অবৈধ ভাবে ভারতে যাওয়ার সময় দুই যুবতি আটক

 মহেশপুরে অবৈধ ভাবে ভারতে যাওয়ার সময় দুই যুবতি আটক




খোন্দকার আব্দুল্লাহ বাশার,খুলনা ব্যুরো প্রধানঃবাংলাদেশ থেকে অবৈধ পথে ভারতে যাওয়ার সময় কুলসুম খাতুন (২৮) ও আয়েশা আক্তার সোহানা (২০) নামে দুই যুবতিকে আটক করেছে বিজিবি। সোমবার রাতে মহেশপুর উপজেলার গোপলপুর গ্রামের জনৈক আলমের পুকুর পাড় থেকে তাদের আটক করা হয়। আটক কুলসুম খাতুন মাদারীপুর সদর উপজেলার ছইনে গ্রামের আনোয়ার সরদারের মেয়ে। অন্যদিকে আয়েশা আক্তার সোহানা নারায়নগঞ্জের ফতুল্লা উপজেলার মুন্সিবাগ গ্রামের আব্দুস সোবাহানের মেয়ে। মহেশপুর ৫৮ বিজিবির সহকারী পরিচালক মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম খান এক ই-মেইল বার্তায় জানান, গত ৩১ আগস্ট যাদবপুর বিওপির দায়িত্বপূর্ণ এলাকায় সীমান্ত পিলার ৪৭/৫-এস হতে আনুমানিক ১৫০ গজ বাংলাদেশের অভ্যন্তরে গোপালপুর মাঠ থেকে ভারতে গমনকালে তাদের আটক করা হয়। আটককৃত বাংলাদেশী নাগরিকদের অবৈধভাবে সীমান্ত অতিক্রম করার দায়ে বাংলাদেশ পাসপোর্ট অধ্যাদেশ ১৯৭৩ এর ১১(১)(গ) ধারায় মহেশপুর থানায় সোপর্দ করে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

মাগুরার শ্রীপুরে দারিয়াপুর ডিগ্রী কলেজের কম্পিউটার চোর গ্রেফতার ও মালামাল জব্দ

মাগুরার শ্রীপুরে দারিয়াপুর ডিগ্রী কলেজের কম্পিউটার চোর গ্রেফতার ও মালামাল জব্দ


 


মো:রাসেল হোসেন, শ্রীপুর (মাগুরা) প্রতিনিধি:


মাগুরার শ্রীপুর উপজেলার দারিয়াপুর ডিগ্রি

কলেজের আইসিটি শাখার কক্ষের গ্রিল ও দরজার

হ্যাজবোল কেটে রাতে অন্ধকারে কম্পিউটার চুরির

অভিযোগে আশিকুর রহমান (২০) নামে এক কুখ্যাত

চোরকে ৪টি স্যামসাং কোম্পানীর মনিটর, ৪টি

সিপিউ,১টি ক্যানন প্রিন্টার ও আনুসাঙ্গিক

যন্ত্রপাতিসহ আটক করেছে শ্রীপুর থানা পুলিশ।

আটককৃত চোর ঔই গ্রামের পুলিশ সদস্য মান্নান

বিশ্বাসের ছেলে ।

পুলিশ জানান, গত ২০ আগস্ট রাতে এলাকার একদল

চিহ্নিত চোর উপজেলার দারিয়াপুর ডিগ্রি কলেজে

হানা দিয়ে আইসিটি কক্ষের গ্রিল ও দরজার

হ্যাজবোল ভেঙ্গে চোরেরা কক্ষে প্রবেশ করে ৪টি

স্যামসাং কোম্পানীর ১৯ ইঞ্চি মনিটর, ৪টি সিপিউ,

১টি ক্যানন প্রিন্টারসহ আনুসাঙ্গিক যন্ত্রপাতি চুরে

করে নিয়ে যায় । পরদিন অর্থ্যাৎ ২১ আগস্ট কলেজ

কর্তৃপক্ষ বিষয়টি স্থানীয় চেয়ারম্যান ও থানা

পুলিশকে অবগত করেন । এরপর থেকে দারিয়াপুর ইউপি

চেয়ারম্যান,স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ও পুলিশ

প্রশাসন উক্ত মালামাল উদ্ধারের বিষয়ে তৎপরতা

শুরু করেন । তৎপরতার একপর্যায়ে ৩১ আগস্ট  সোমবার রাতে

চেয়ারম্যানসহ কলেজ কর্তৃপক্ষ এলাকার এক

সন্দেহভাজন কম্পিউটার দোকানদার আশিকুর

রহমানকে কলেজ ক্যাম্পাসে ডেকে নিয়ে

জিজ্ঞাসাবাদ করেন । জিজ্ঞাসাবাদের একপর্যায়ে

সে নিজে চুরির বিষয়টি স্বীকার করে এবং ঔই

গ্রামের ইদ্রিস শেখের পুত্র জুয়েল শেখ (২১) ও বকুল

শেখের পুত্র হামিম শেখ(২২) তার সাথে জড়িত ছিল

বলে জানায় । পরে চেয়ারম্যান ও স্থানীয় লোকজনের

সহযোগিতায় শ্রীপুর থানা পুলিশ আশিকুর রহমান

আশিকের বাড়িতে তল্লাশী করে তার ঘরের ছাদ

থেকে চোরাই মালামালগুলি উদ্ধার করতে সক্ষম হন ।

এ বিষয়ে শ্রীপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ

আলী আহমেদ মাসুদ বলেন,সোমবার রাত সাড়ে

আটটার দিকে সংবাদ পেয়ে দারিয়াপুর গ্রামের

আশিকুর রহমান নামে একজনকে চোর সনাক্ত করতে

সক্ষম হই এবং তার বাড়ি থেকে চুরি যাওয়া সকল

মালামালগুলি উদ্ধার করি । এঘটনায় জড়িত থাকায়

ওই গ্রামের মান্নান বিশ্বাসের ছেলে আশিকুর

রহমানকে আটক করে মাগুরা আদালতে প্রেরণ করা

হয়েছে এবং বাকিদের আটকের বিষয়ে পুলিশি

অভিযান অব্যাহত রয়েছে ।

আশাশুনিতে বীর উত্তম সিআর দত্ত স্মরণে মানববন্ধন

আশাশুনিতে বীর উত্তম সিআর দত্ত স্মরণে মানববন্ধন





আহসানউল্লাহবাবলু উপজেলা প্রতিনিধিঃ আশাশুনিতে বীর উওম মেজর জেনারেল (অবঃ) সি আর দত্ত স্মরনে মানববন্ধন অনুষ্টিত হয়েছে। মঙ্গলবার সকালে থানা মোড়ে আশাশুনি উপজেলা হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদ ও পূজা উদযাপন পরিষদের আয়োজনে এ মানববন্ধন অনুষ্টিত হয়। আশাশুনি উপজেলা হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের সভাপতি সাবেক প্রভাষক সুবোধ চক্রবর্তীর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক দীপঙ্কর কুমার মন্ডলের পরিচালনায় মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন ও বক্তব্য রাখেন উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের উপদেষ্টা বিমল কৃষ্ণ সানা, উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক রনজিত কুমার বৈদ্য, যুব ঐক্য পরিষদের আহ্বায়ক আশিষ মণ্ডল,সদস্যসচিব নির্মল মন্ডল, সদর কালী মন্দিরের সভাপতি দীপন মন্ডল, সাধারণ সম্পাদক বরুণ চন্দ্র মন্ডল।


মানববন্ধন উপস্থিত নেতৃবৃন্দ সি আর দও’র মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করে বলেন, শোককে শক্তিতে পরিনত করে তার অসমাপ্ত কাজকে সমাপ্ত করতে আমাদেরকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। সি.আর দত্ত বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের প্রতিষ্টাতা সভাপতি হিসেবে আমৃত্যু দায়িত্বরত ছিলেন এবং তিনি মহান মুক্তিযোদ্ধের সময় ৪নং সেক্টর কমান্ডারের দায়িত্ব পালন করেছেন।তার মৃত্যুতে জাতি একজন দেশ প্রেমিককে হারালো।

আশাশুনির আগরদাড়ী হাইস্কুলে অফিস সহকারী নিয়োগে ঘুষ বানিজ্য

আশাশুনির আগরদাড়ী হাইস্কুলে অফিস সহকারী নিয়োগে ঘুষ বানিজ্য





আহসান উল্লাহ বাবলু উপজেলা প্রতিনিধি : আশাশুনি উপজেলার কুল্যা ইউনিয়নের আগরদাড়ী রহিমীয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে পাতানো অফিস সহকারী নিয়োগে দূনর্ীতি ও ঘুষ বানিজ্যে বন্ধ করে জেলা প্রশাসক এর অধীনে নিয়োগ পরীক্ষা নেওয়ার আবেদন জানিয়ে এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে জেলা প্রশাসক বরাবর দরখাস্ত করা হয়েছে। দরখাস্তের ভিত্তিতে জানাগেছে, আগরদাড়ী গ্রামের মৃত এমরান মোল্যার ছেলে ইয়াহিয়া মোল্যা আগরদাড়ী রহিমীয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সভাপতি হওয়ার সুবাদে মহামারী করোনা ভাইরাসের মধ্যে  অফিস সহকারী শূণ্য পদে তার নিজ পুত্র খায়রুল ইসলাম কে নিয়োগ নিশ্চিত করার তথ্য ও অন্যান্য দূর্নীতি ফঁাস হওয়ায় এলাকায় ব্যাপক সমালোচনা সহ বিভিন্ন পত্র-পত্রিকায় ধারাবাহিকভাবে প্রকাশ পায়। ব্যাপক সমালোচনার মুখে ইয়াহিয়া মোল্যা কতর্ৃপক্ষের অনুমতি ব্যতিত বিধি বর্হিভূতভাবে একই গ্রামের মৃত মোজাহার সরদারের ছেলে নাশকতা মামলার আসামী তার মামা অহেদ আলীকে সভাপতি করে তার নিজ পূত্র খায়রুলকে নিয়োগ প্রদানের বিষয়টি ১৫ লক্ষ টাকার বিনিময়ে একই গ্রামের সাবেক মেম্বার আনছার আলী ও তার পূত্র আলমগীর হোসেন আঙ্গুর ও অহেদ আলী সহ নিয়োগ বোর্ডের সদস্যদের ম্যানেজ করে চুড়ান্ত করেন। কোন নিয়োগ বোর্ড নিজ উপজেলার বাহিরে বসানোর নিয়ম না থাকলেও তারা নিয়ম বর্হিভূতভাবে আগামী ৪ সেপ্টেম্বর শুক্রবার সাতক্ষীরা সরকারী বালক উচ্চ বিদ্যালয়ে কেন্দ্র করে নিয়োগ বোর্ডের তারিখ চুড়ান্ত করে। মহামারী করোনা ভাইরাস প্রতিরোধের লক্ষে সরকার প্রজ্ঞাপন জারী করে স্কুল-কলেজ সহ যাবতীয় পরীক্ষা বন্ধ রেখেছে। এদিকে অফিস সহকারী পদে কোরাম পূরণ করার লক্ষে তাদের সাজানো আবেদনকারী শ্যামনগর উপজেলার শ্রীফলকাটি গ্রামের আব্দুল হাই এর ছেলে আল-আমিন, তালা উপজেলার হরিহরনগর গ্রামের আবুল কাশেম মোড়লের ছেলে রুবেল আহমেদ ও আশাশুনি উপজেলার আরার গ্রামের ইশারাত আলীর ছেলে মহাসিন আলী ঢাকার বিভিন্ন গার্মেন্টস ও কোম্পানীতে চাকরিরত আছে। সেজন্য এই মুহুর্তে নিয়োগ পরীক্ষার আয়োজন করলে করোনা ভাইরাস বিস্তারের সম্ভাবনা থেকে যায়। ইয়াহিয়া মোল্যা এর আগে সহকারী প্রধান শিক্ষক পদে রঘূনাথ নামক এক ব্যক্তিকে ১২ লক্ষ টাকার বিনিময়ে নিয়োগ প্রদান করেন। যা সেই সময় কালের চিত্র সহ বিভিন্ন পত্রিকায় প্রকাশিত হয়। তাই সভাপতি না থাকায় কিম্বা নতুন সভাপতি নিয়োগ, প্রশাসন বা যথাযথ কতর্ৃপক্ষের পূর্ব অনুমোদন ব্যতিত বিধি বর্হিভূত নিয়োগ কমিটির পাতানো নিয়োগ পরীক্ষা বন্ধ করে জেলা প্রশাসকের অধীনে সুষ্ঠু পরিবেশে নিরপেক্ষ নিয়োগ পরীক্ষা অনুষ্ঠানে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের জোর দাবী জানিয়েছেন এলাকাবাসী।

আশাশুনিতে পত্রদূত এর ম্যানেজারের ভাইয়ের দাফন সম্পন্ন

 আশাশুনিতে পত্রদূত এর ম্যানেজারের ভাইয়ের দাফন সম্পন্ন





আব্দুস সামাদ বাচ্চু, আশাশুনি সংবাদদাতাঃ


আশাশুনিতে দৈনিক পত্রদূত এর ম্যানেজার মোঃ রফিকুল ইসলামের বড় ভাই সাবেক ব্যাংকার আইয়ুব আলীর দাফন সম্পন্ন হয়েছে। মঙ্গলবার সকালে পারিবারিক কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়। আশাশুনি সদর ইউনিয়নের মৃত বজলুর রহমান সরদার এর জৈষ্ঠ পুত্র সাবেক ব্যাংক কর্মকর্তা মোঃ আইয়ুব আলী(৬৩) সোমবার বিকাল ৫ টায় নিজ বাড়িতে ইন্তেকাল করেন।মৃত্যুকালে তিনি ২ কন্যা ও অসংখ্য আত্মীয় স্বজন রেখে গেছেন। জানাজার নামাজের ইমামতি করেন মরহুমের জামাতা আশাশুনি আলিয়া মাদ্রাসার সুপার ডঃআবুল হাসান। আশাশুনি উপজেলার রাজনৈতিক-সামাজিক শিক্ষক ও ওম গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ মরহুমের জানাজার নামাজে অংশগ্রহণ করেন

কুড়িগ্রামে দুই প্রতিবন্ধী ভাইয়ের লাশ উদ্ধার

কুড়িগ্রামে  দুই প্রতিবন্ধী ভাইয়ের লাশ উদ্ধার




মোঃইয়ামিন সরকার আকাশ।

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধিঃ


কুড়িগ্রামে নিখোঁজের একদিন পর দুই বাক প্রতিবন্ধী সহোদর ভাইয়ের মরদেহ পুকুর থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। মঙ্গলবার ভোর ৬টার সময় সদর উপজেলার মোগলবাসা ইউনিয়নের নিধিরাম গ্রাম বাড়ির পাশে পুকুর থেকে মারুফ (১০) ও মামুন (৮) নামে দুই ভাইয়ের মরদেহ উদ্ধার করে প্রতিবেশীরা। এ ঘটনায় এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে। শিশু দুটির মা আঁখি বেগম শোকে পাথর হয়ে গেছে।


মোগলবাসা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নুরজামাল বাবুল জানান, সোমবার (৩১ আগস্ট) বিকেল ৩টা থেকে দুই বাক প্রতিবন্ধী ভাইয়ের খোঁজ পাওয়া যাচ্ছিল না। এ ব্যাপারে এলাকাবাসী রাতে মাইকিং করে। পরে বিভিন্নভাবে খুঁজেও তারা ব্যর্থ হয়। পরে মঙ্গলবার (১ সেপ্টেম্বর) ভোর ৬টায় স্থানীয় মুসল্লিরা ফজরের নামাজ শেষে বাড়ি ফিরতে গিয়ে পুকুরের মধ্যে শিশু দুটির মরদেহ ভাসতে দেখে স্বজনদের খবর দেয়।


দুই বাক প্রতিবন্ধী সন্তানের মা আঁখি বেগম জানান, তার দুটি ছেলে এবং একটি মেয়ের সবাই বাক প্রতিবন্ধী। পর পর তিন প্রতিবন্ধী সন্তান জন্ম দেয়ার কারণে তাদের বাবা বেলাল হোসেন তিন বছর আগে নিরুদ্দেশ হয়। এরপর থেকে পরিবারের সাথে তিনি কোন যোগাযোগ রাখেনি। ভূমিহীন আঁখি বেগম অনেক কষ্ট করে তিন সন্তানকে মানুষ করছিলেন। তিনি মোগলবাসা থেকে কুড়িগ্রাম শহরের ইয়ারব নামে একটি ডায়াগনস্টিক সেন্টারে আয়ার কাজ করেন। সোমবার বিকাল ৪টার সময় অফিস থেকে বাড়ি ফেরার পথে দু’ছেলের নিখোঁজের খবর পেয়ে পাগোল প্রায় হয়ে গেছেন।


ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে কুড়িগ্রাম সদর থানার অফিসার ইনচার্জ মাহফুজার রহমান জানান, ঘটনাটি শুনেছি। আপন সহোদর বাক প্রতিবন্ধী দুই ভাই অসাবধানতাবশত: পুকুরে পরে মারা যেতে পারে

করোনা প্রতিরোধে মোংলায় সাংবাদিকদের নিয়ে ফ্রেন্ডশিপের মতবিনিময়

  করোনা প্রতিরোধে মোংলায় সাংবাদিকদের নিয়ে ফ্রেন্ডশিপের মতবিনিময়





মোঃএরশাদ হোসেন রনি, মোংলা


করোনা প্রতিরোধে গণমাধ্যম কমর্ীদের অবদান ও করণীয় নিয়ে মোংলায় মতবিনিময় সভা করেছে উন্নয়ন সহযোগী সংস্থা ফ্রেন্ডশিপ। মঙ্গলবার বিকেল ৪টায় মোংলার মাছমারা এলাকায় ফ্রেন্ডশিপ হেলথ ক্লিনিকের আয়োজিত এ সভায় বক্তারা বলেন, লবণাক্ততা, ঝড়-জলোচ্ছাসের মত বিভিন্ন প্রাকৃতিক দুযোর্গ মোকাবেলা করে আসছে দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের মানুষেরা। এতে কর্মহীন হয়ে আর্থিক অভাব-অনটনে পড়েছে উপকূলীয় এলাকার দরিদ্র ও স্বল্প আয়ের মানুষ। তাই গুরুত্ব দেয়া হচ্ছে মোংলার স্থানীয় জনগণের দুভোর্গ লাঘব এবং সুস্বাস্থ্যকে। 


তাই কিং আব্দুল্লাহ বিন আজিজ প্রোগ্রামের অর্থায়নে ইসলামিক ডেভেলপমেন্ট ব্যাংকের মাধ্যমে করোনাকালে বিশেষ কর্মসূচী নিয়েছে ফ্রেন্ডশিপ। মোংলায় পরিচালিত এ কর্মসূচী বাস্তবায়নে আরো সহায়তা করছে কানাডীয় সাহায্য সংস্থা গ্র্যান্ড চ্যালেঞ্জ কানাডা। 


ফ্রেন্ডশিপের সিনিয়র প্রকল্প বিশেষজ্ঞ ডা: আবুল হোসেন জানান, করোনা মহামারীর সময় মোংলার প্রান্তিক অঞ্চলে বসবাসকারী প্রায় ৫ হাজার মানুষকে বিশেষ স্বাস্থ্য সেবা দিয়ে যাচ্ছে ফ্রেন্ডশিপ। এজন্য প্রতিমাসে ২০টি স্যাটেলাইট ক্লিনিক পরিচালনা করা হচ্ছে। এতে নিয়োজিত রয়েছেন ফ্রেন্ডশিপের সিনিয়র প্যারামেডিক, প্যারামেডিক, স্যাটেলাইট ক্লিনিক সুপারভাইজারসহ মাঠ পযার্য়ের স্বাস্থ্য কমর্ী। তারা প্রতিনিয়ত বিনামূল্যে করোনা প্রতিরোধক উপকরণ ও ওষুধ বিতরণ করছেন। 


মতবিনিময় সভায় ফ্রেন্ডশিপের মনিটরিং এন্ড ইভালুয়েশন প্রধান রাসেল হুসেন, আঞ্চলিক সমন্বয়ক আতিকুল ইসলাম, মেডিকেল অফিসার ডা: আব্দুর রহমানসহ স্থানীয় প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন। স্থানীয় জনগণের সুস্বাস্থ্যে বিভিন্ন উদ্যোগ গ্রহণ করায় ফ্রেন্ডশিপকে সাধুবাদ জানান মোংলা প্রেসক্লাবের সভাপতি আলহাজ্ব এইচ এম দুলালসহ সকল সাংবাদিকেরা। এছাড়া স্থানীয় জনগণের কল্যাণে ফ্রেন্ডশিপের সহযোগীতা আরো বাড়ানোর তাগিদ সাংবাদিকদের। 

নওগাঁর আত্রাইয়ে স্কুল পর্যায়ে বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ

নওগাঁর আত্রাইয়ে স্কুল পর্যায়ে বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ

 



মোঃ ফিরোজ হোসাইন রাজশাহী ব্যুরোঃনওগাঁর আত্রাইয়ে স্কুল পর্যায়ে বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে। গত ফেব্রুয়ারী থেকে আগষ্ট/২০ পর্যন্ত উপজেলা পর্যায়ে শুদ্ধ সুরে জাতীয় সংগীত প্রতিযোগিতা, বিজ্ঞান অলিম্পিয়াড, বিজ্ঞান মেলা, অনলাইন সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

আজ সকাল ১০টায় উপজেলা পরিষদ হল রুমে বিজয়ী প্রতিষ্ঠান প্রধানদের মাঝ পুরস্কার তুলে দেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ ছানাউল ইসলাম। এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা একাডেমি সুপারভাইজার প্রদীপ কুমার সরকার, মোল্লা আজাদ সরকারি কলেজ অধ্যক্ষ মাহাবুবুল হক দুলু, অধ্যক্ষ গোলাম কিবরিয়া সহ বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা। 

উপজেলার সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কুইজের মাধ্যমে মেধা যাচাই, জাতীয় সংগীত চর্চাকে অনুপ্রাণিত করার লক্ষ্যে ‘উপজেলা পর্যায়ে দলগত জাতীয় সংগীত  প্রতিযোগিতা-২০১৯-২০ অনুষ্ঠিত হয়। এ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ ছানাউল ইসলাম।

এই জাতীয় সংগীত প্রতিযোগিতা এর আগে ৮টি ইউনিয়নে প্রাথমিক মাধ্যমিক এবং উচ্চমাধ্যমিক স্কুল ও কলেজ পর্যায়ের অনুষ্ঠিত হয়। সেখান থেকে প্রাথমিক মাধ্যমিক কলেজ পর্যায়ের একটি করে দল চ্যাম্পিয়ন হয়। চ্যাম্পিয়ন আটটি দল কে নিয়ে উপজেলা পর্যায়ে প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়েছিল। সেখানে প্রাথমিক পর্যায়ে বেলোয়া চৌউরাড়ী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, মাধ্যমিক পর্যায়ে শুটকিগাছা উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ে পাইকড়া বড়াইকুড়ি কলেজ এবং বিজ্ঞান অলিম্পিয়াডে ২টি গ্রুপে জুনিয়র গ্রুপে শুকটিগাছা স্কুল ও কলেজ এবং মোল্লা আজাদ সরকারী কলেজ বিজয়ী হয়েছে। 

পটিয়ায় ভাগিনাকে কুপিয়ে জখম, মামা গ্রেফতার

পটিয়ায় ভাগিনাকে কুপিয়ে জখম, মামা গ্রেফতার




নিজস্ব সংবাদদাতাঃ- আপন ভাগিনাকে নৃশংসভাবে কুপিয়ে জখমের ঘটনায় পটিয়া থানা পুলিশ মামা জুলফিকার আলমকে গ্রেফতার করেছে। সে  পটিয়া পৌরসভার ৩নং ওয়ার্ডের সুচক্রদন্ডী গ্রামের ওয়াপদা রোডের মরহুম আবদুস সালামের পুত্র। গতকাল  



মঙ্গলবার দুপুরে পটিয়া সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে পাঠানো হয়েছে।



এর আগের দিন রাতে (সোমবার) পটিয়া থানার উপ-পরিদর্শক মোঃ বোরহানসহ একদল পুলিশ অভিযান চালিয়ে  জুলফিকারকে তার মেয়ের বাসা  ধুপা পুকুর পাড় এলাকার ৫ম তলা বাসায়   আত্নগোপন করলে গোপন সংবাদ ভিত্তিতে পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে বলে  জানান।জায়গা সম্পত্তির   বিরোধ নিয়ে আপন ৩ মামাসহ সন্ত্রাসীরা দুই ভাগিনা ইমরানুল হক ও মো. মামুনকে কুপিয়ে মারাত্মকভাবে জখম করে। বর্তমানে মামুন আইসিইউতে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছেন।ঘটনার পর ভাগিনার পক্ষ হয়ে শফিকুল আলম প্রকাশ বশর (মামা) বাদী হয়ে পটিয়া সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজষ্ট্রিট আদালতে একটি মামলা নং ৩৫ দায়ের  করেন।ওই মামলায় আসামীরা হলেন- জুলফিকার আলম, মো. নুরুল আলম, আবদুল আলীম, রিদয়ানুল হক প্রকাশ পাবেল, মো. রেজায়ানুল হক প্রকাশ রুবেল, আতিকুর রহমান, ইফতেখার, ঈদনান আলম, মোঃ- ফাহিম, আবদুল মাবুদ।মামলার বাদী শফিকুল আলম বশর জানিয়েছেন আসামিরা মামলাটি তুলে নেওয়ার বিভিন্ন ভয়ভীতি ও হুমকি দিচ্ছে। তাদের ভয়ে বাদীর লোকজন বাড়ি ছাড়া।



পটিয়া থানার উপ-পরিদর্শক মো. বোরহান উদ্দিন জানিয়েছেন, ভাগিনাকে কুপিয়ে জখমের ঘটনায় মামা জুলফিকারকে গ্রেফতার করে আদালতে পাঠানো হয়েছে। অন্য আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

মাগুরা কৃষকের মৃত্যু বজ্রপাতে

মাগুরা কৃষকের মৃত্যু বজ্রপাতে




মোঃকুতুবুল আলম, মুহম্মদপুর(মাগুরা)প্রতিনিধি:মাগুরা জেলার মহম্মদপুর উপজেলায় দুপুর ১২ টায় বজ্রপাতে মুজিবর রহমান হরু (৫৫) নামে এক কৃষকের মৃত্যু হয়েছে। তিনি উপজেলার চরঝামা গ্রামের সালাম মোল্লার ছেলে।


 

মুজিবুর মাঠে কাজ করতে ছিলো,দুপুরে বৃষ্টির সাথে বজ্রপাতে হয়ে মুজিবুর আহতো  হয়া


আহতো মুজিবুর কে তার সহকর্মীরা হাসপাতালে নেবার পথে তার মৃত্যু হয়।

তার এই মৃত্যুতে এলাকায় পরেছে শোকের ছায়া হয়ে পরেছে।

বীরগঞ্জে ‘গোধুলী বৃদ্ধাশ্রমে’ স্বাস্থ্য চিকিৎসা কেন্দ্রের উদ্বোধন করলেন এমপি মনোরঞ্জন শীল গোপাল

বীরগঞ্জে ‘গোধুলী বৃদ্ধাশ্রমে’ স্বাস্থ্য চিকিৎসা কেন্দ্রের   উদ্বোধন করলেন এমপি মনোরঞ্জন শীল গোপাল




মামুনুর রশিদ,দিনাজপুর প্রতিনিধি ॥- দিনাজপুরের বীরগঞ্জ উপজেলার মোহাম্মদপুর ইউনিয়নের রসুলপুর ‘গোধুলী বৃদ্ধাশ্রমে’ স্বাস্থ্য চিকিৎসা কেন্দ্রের উদ্বোধন হয়েছে।

১ সেপ্টম্বর ২০২০ মঙ্গলবার রসুলপুর গোধুলী বৃদ্ধাশ্রমে স্বাস্থ্য চিকিৎসা কেন্দ্রের উদ্বোধন করেন দিনাজপুর-১ আসনের সংসদ সদস্য মনোরঞ্জন শীল গোপাল।

এসময় উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আজিজুল ইমাম চৌধুরী, বীরগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নুর ইসলাম নুর, জেলা পরিষদের সদস্য মো. আতাউর রহমান বাবু, দীপ্ত জীবন ফাউন্ডেশন হাসপাতালের সাধারন সম্পাদক মো. ইয়ামিন আলী, কাহারোল উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক রাজেন্দ্র দেব নাথ, মোহাম্মদপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান গোপাল দেব শর্মা, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আয়সা আক্তার বৃষ্টি, কাহারোল উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মো. কামাল হোসেন, কাহারোল উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি মো. আসিফ রেজা রুবেল।

পরে সংসদ সদস্য মনোরঞ্জন শীল গোপাল ‘‘গোধুলী বৃদ্ধাশ্রমে’’ আশ্রায়িত বৃদ্ধাদের শারিরিক খোজ-খবর নেন ও তাদের নিয়ে একসাথে দুপুরের খাবার খান।

বাকশীমুল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান প্রার্থী এড.ফজলুল হক

 বাকশীমুল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান প্রার্থী এড.ফজলুল হক




মারুফ হোসেন-বুড়িচং(কুমিল্লা) প্রতিনিধিঃ   

কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলার বাকশীমুল গ্রামের কৃতি সন্তান এডভোকেট মোঃ ফজলুল হক।শুধু কথায় নয় কাজেই তিনি তার ব্যাক্তিত্বের পরিচয় দিয়েছে। আর তিনি হলেন তিনি বিভিন্ন সমাজ সেবা মূলক কাজে জড়িত।  বাংলাদেশ আমেরিকান ডেমোক্রেটিক পার্টির উপদেষ্টা।তিনি ডেমোক্রেটিক পার্টির সাবেক ভাইস প্রেসিডেন্ট। মিশিগানের কুমিল্লা সমিতির বর্তমান সভাপতি,ইউ এস এ।সাবেক সভাপতি বাংলাদেশ এসোসিয়েশন সহ সভাপতি।কোষাধ্যক্ষ ডেট্রয়েট দারুলউলুম মাদ্রাসা।উত্তর আমেরিকার মুসলিম উম্মাহর সদস্য।উত্তর আমেরিকার ইসলামি সংগঠনের সদস্য। মিশিগান বাংলাদেশ মুসলিম সমিতি।         


আমাদের এ সোনার বাংলাদেশে সমাজ সেবামূলক প্রতিষ্ঠান,-প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান, হাজী আঃ আজিজ ফাউন্ডেসান, প্রতিষ্ঠাতা,আজিজিয়া হাফেজিয়া মাদ্রাসা ও এতিম খানা, বাকশীমুল,  প্রতিষ্ঠাতা মসজিদ আল ফালাহ বাকশীমূল হাই স্কুল প্রাঙ্গনে, হাজী আঃ আজিজ উন্মুক্ত গোরস্হান, হাজী আঃ আজিজ ফাউন্ডেসান কতৃক,বাকশীমূল ইউনিয়নের সকল প্রাইমারি স্কুল, মাদ্রাসা, ও হাই স্কুলে গরীব ও মেধাবী ছাত্রদেরকে বৃত্তি প্রধান করেন সকল মসজিদ মাদ্রাসায় সাহায্য করে আসছেন।গরীব মালকিন এতিম ও বিধবাদের সহায়তায় সব সময় সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিচ্ছেন।আরও অনেক সমাজ উন্নয়নমূলক ও সমাজ সেবায় জড়িত।


পুরো ইউনিয়ন বাসী তাঁকে চেয়ারম্যান হিসেবে দেখতে চায়।তারমতো সুযোগ্য লোককে বাকশীমুল ইউনিয়ন বাসী চেয়ারম্যান হিসেবে পেতে আগ্রহী।এড.ফজলুল হক বলেন  সমাজের মানুষের জন্য সবসময়ই নিজেকে নিয়োজিত রাখবেন।সমাজের প্রতিটি মানুষ তাকে নিয়ে অন্য রকম ভাবনা। তিনি আগামী ইউপি চেয়ারম্যান নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে সকলের দোয়া কামনা করেছেন।এ করোনা কালীন সময়ে সাধ্যমতো লোকজন সাহায্য করেছেন।

যশোর জেলা মাইক, লাইট মালিক ও শ্রমিক কল্যান সমিতি ঝিকরগাছা শাখা গঠিত

 যশোর জেলা মাইক, লাইট মালিক ও শ্রমিক কল্যান সমিতি ঝিকরগাছা শাখা গঠিত

স্টাফ রিপোর্টারঃ আজ (১লা সেপ্টেম্বর) রোজ মঙ্গলবার সকাল ১০ টার সময় যশোর জেলা মাইক, লাইট মালিক ও শ্রমিক সমিতি ঝিকরগাছা শাখা কমিটি গঠিত হয়। ১৬ সদস্য বিশিষ্ট কমিটিতে যারা ঠাই পেয়েছেন তারা হলেন উপদেষ্টা  আইয়ুব হোসেন, লুৎফর রহমান, মোহাম্মদ আলী, ইকরামুল হক রেন্টু, টেরি বিশ্বাস। 

কার্যনির্বাহী কমিটিতে যারা দ্বায়িত্বে আছেন তারা হলেন বশির আহমেদ ( সভাপতি), শিবলি (সহ সভাপতি), শাহারাজ হোসেন ( সাধারণ সম্পাদক ), শাহাআলম ( সহ সাধারণ সম্পাদক) , শফিকুল ( কোষাধ্যক্ষ), ওমর ফারুক (দপ্তর সম্পাদক), রহুল কুদ্দুস ( সাংগঠনিক সম্পাদক), মোহাম্মদ আলী ( সহ সাংগঠনিক সম্পাদক), আল আমিন ( প্রচার সম্পাদক), আলী রেজা রাজু ( আইন বিষয়ক সম্পাদক), আসাদুল ( সাংস্কৃতিক ও ক্রীড়াসম্পাদক) 


দৌলতখান উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তাকে বিদায়ী সংবর্ধনা দিলেন দক্ষিণ বড়ধলী আহমদিয়া দাখিল মাদ্রাসা

দৌলতখান উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তাকে বিদায়ী সংবর্ধনা দিলেন দক্ষিণ বড়ধলী আহমদিয়া দাখিল মাদ্রাসা


 


মোঃ আওলাদ হোসেন 

জেলা প্রতিনিধি ভোলা (দৌলতখান)


ভোলার দৌলতখানে নির্বাহী কর্মকর্তা জনাব জীতেন্দ্র কুমার নাথ বদলী জনিত কারনে দৌলতখান ত্যাগ করছেন।যার কারনে দক্ষিণ বড়ধলী আহমদিয়া দাখিল মাদ্রাসার পক্ষ থেকে আজ মজ্ঞল বার অত্র মাদ্রাসার সকল শিক্ষক, কর্মকর্তার উপস্থিতিতে স্যারকে ক্রেস্ট সম্মাননা দিয়ে বিদায়ী সংবর্ধনার আয়োজন করেন প্রতিষ্ঠানটি।উল্লেখ করা প্রয়োজন জীতেন্দ্র কুমার নাথ স্যার দৌলতখানে মাত্র ২বছর ৬ মাস দায়িত্ব পালন করেছেন।দায়িত্বকালীন দৌলতখান উপজেলায় অভূতপূর্ব পরিবর্তন সাধন হয়েছে।তিনি ছিলেন যথেষ্ট শিক্ষানুরাগী ও সৎ একজন অফিসার। 

 অনুষ্ঠানটিতে অন্যান্য দের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন  দৌলতখান সরকারী আবু আবদুল্লাহ কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ জনাব স.ম. ফারুক স্যার! 

সংবর্ধনা অনুষ্ঠানটি পবিত্র কুরঅান পাঠের মাধ্যমে শুরু করেন মাও শহীদুল ইসলাম।বক্তৃতা দেন দক্ষিণ বড়ধলী আহমদিয়া দাখিল মাদ্রাসার সাবেক সুপার মরহুম মাওঃশিহাবউদ্দীন হুজুরের ছেলে জনাব নিয়াজ মাখদুম,মাওলানা আবু তাহের, অত্র মাদ্রাসার বর্তমান সুপার জনাব মোহাম্মদ সিরাজুল ইসলাম, প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন জনাব জীতেন্দ্র কুমার নাথ।

অনুষ্ঠানটি উপস্থাপনা করেন অত্র মাদ্রাসার সহকারী শিক্ষক জনাব মোঃ আওলাদ হোসেন।

সিরাজগঞ্জে জেলা বিএনপির আয়োজনে ৪৪তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন

 সিরাজগঞ্জে জেলা বিএনপির  আয়োজনে ৪৪তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন


মাসুদ রানা সিরাজগঞ্জ জেলাপ্রতিনিধিঃ  মঙ্গলবার সকালে  বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল  (বিএনপি) সিরাজগঞ্জ জেলা শাখার আয়োজনে -  গৌরবময় ৪২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে জেলা বিএনপির ইবি রোডস্থ  দলীয় কার্যালয়ে, জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন,  শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পন,ইবিরোডে- র‍্যালী ও দলীয় কার্যালয়ে আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

   জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি মজিবর রহমান লেবুর সভাপতিত্বে প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখেন,  বিএনপি কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির অন্যতম সদস্য ও জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সাইদুর রহমান বাচ্চু।


জেলা বিএনপি'র যুগ্ম-সম্পাদক রাশেদুল হাসান রঞ্জন ও সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সাইদ সুইটের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সভায় আরও বক্তব্য রাখেন, জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি আজিজুর রহমান দুলাল, নাজমুল হাসান তালুকদার রানা, রকিবুল হাসান রতন, যুগ্ম-সম্পাদক ভিপি শামীম খান,  মুন্সী জাহিদ আলম, সাংগঠনিক সম্পাদক মীর্জা মোস্তফা জামান, আলমগীর আলম, উপদেষ্টা শফিউল আলম ডলার, যুগ্ম-সম্পাদক সাব্বির হোসেন ভূইয়া শাফী, মিলন ইসলাম খান, অর্থনৈতিক সম্পাদক এস,এম রেজাউর রহমান ফিরোজ,  জেলা কৃষক দলের আহবায়ক সাইদুল ইসলাম আলো, জেলা শ্রমিক দলের সভাপতি আব্দুল মজিদ, জেলা যুবদলের সভাপতি মীর্জা আবদুল জব্বার বাবু, সাধারণ সম্পাদক মুরাদুজ্জামান মুরাদ, সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল আলীম, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি আনোয়ার হোসেন রাজেশ, সাংগঠনিক সম্পাদক মিলন হক রঞ্জু, জেলা ছাত্রদলের সভাপতি জুনায়েদ হোসেন সবুজ, সাধারণ সম্পাদক সেরাজুল ইসলাম সেরাজ, সাংগঠনিক সম্পাদক রিফাত হাসান সুমনসহ বিএনপি, অংগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

এসময় জেলা বিএনপি, সদর থানা বিএনপি, শহর বিএনপি, অংগ ও সহযোগী সংগঠনের বিপুলসংখ্যক নেতা-কর্মী উপস্থিত ছিলেন ।

মধুপুরে মামলা তুলে নেয়ার জন্য বাদীকে হুমকী, বাদীর থানায় জিডি

 মধুপুরে মামলা তুলে নেয়ার জন্য বাদীকে হুমকী, বাদীর থানায় জিডি




মোঃ আঃ হামিদ মধুপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি:


টাঙ্গাইলের মধুপুরে শিশুধর্ষন মামলার আসামী এবং তার পরিবারের লোকজন মামলার বাদীকে মামলা তুলে নেওয়ার জন্য প্রাণ নাশের হুমকী দিচ্ছে বলে জানা যায়। 


উল্লেখ্য টাঙ্গাইল জেলার মধুপুর উপজেলাধীন মমিনপুর গ্রামের আয়নাল হকের ছেলে সাগর ও নওশের আলীর ছেলে সোহাগ ২৯ জুন একই এলাকার ৬ বছরের এক শিশুকে জোর পূর্বক ধর্ষণ করে। ঘটনা জানতে পেরে ধর্ষিতার পরিবারের লোকজন ধর্ষকদ্বয়কে আটক করে ৯৯৯ কল দিলে মধুুপুর থানা পুলিশ তাদেরকে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে আসে। পরে পরিবারের লোকজন শিশুটিকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য মধুপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসে। হাসপাতালের কর্মরত ডাক্তার তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে প্রেরণ করেন। এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে ধর্ষিতার  পিতা বাদী হয়ে মধুপুর থানায় আসামীদের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেন। মামলা নং- ৩১, তারিখ- ৩০/০৬/২০২০ইং ধারা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ২০০০ (সং/০৩) এর ৯ (৩)। আসামীদ্বয়কে মধুপুর থানা পুলিশ বিজ্ঞ আদালতে প্রেরণ করলে আদালত তাদেরকে জেল হাজতে প্রেরণ করেন। আসামীদ্বয় বর্তমানে জামীনে আসলে তার পরিবারের লোকজন মামলার বাদীকে মামলা তুলে নেওয়ার জন্য প্রাণনাশসহ বিভিন্ন ধরনের হুমকি প্রদান করছেন বলে মামলার বাদী জানান। এ ব্যাপারে মধুপুর থানায় একটি সাধারণ ডাইরী(জিডি) করা হয়েছে। সাধারন ডাইরী(জিডি) নং- ৯৯২, তারিখ- ২৬-০৮-২০২০ইং।

যশোরে গৃহবধূ হত্যার অভিযোগে স্বামী আটক

 যশোরে গৃহবধূ হত্যার অভিযোগে স্বামী আটক



মোরশেদ আলম যশোর ভ্রাম্যমান প্রতিনিধিঃযশোরের মণিরামপুরে চুমকি দত্ত (২৮) নামে এক গৃহবধূকে পিটিয়ে ও শ্বাসরোধে হত্যার অভিযোগ উঠেছে।

এই ঘটনায় আত্মহত্যার প্ররোচনা দানের অভিযোগের মামলায় গৃহবধূর স্বামীকে আটক করেছেন পুলিশ। রবিবার ৩০ আগষ্ট রাত ১টার দিকে এই ঘটনা ঘটে। চুমকি মণিরামপুর পৌরশহরের তরুন চন্দ্রের মেয়ে এবং পৌরসভার হাকোবা ব্রীজসংলগ্ন এলাকার মৃত্যুঞ্জয় দত্তের স্ত্রী।পরিবারের স্বজনরা জানায়, নয় বছর আগে তাদের বিয়ে হয়।

ওই দম্পত্তির ৪ বছর বয়সী নিহারিকা দত্ত নামে এক মেয়ে রয়েছে।


পারিবারিক কলহের জেরে ধরে রবিবার ৩০ আগষ্ট  সন্ধ্যায় মৃত্যুঞ্জয় চুমকিকে মারপিট করেন। একপর্যায়ে গলা টিপে ধরে তার মাথা দেওয়ালের সাথে আঘাত করেন। এরপর মৃত্যু নিশ্চিত করতে তাকে বালিশ চাপা দেওয়া হয়েছে। পরে তারা বিষয়টি আত্মহত্যা বলে প্রচার করেন, বলে নিহত গৃহবধূর স্বজনদের অভিযোগ।


লাশের গলায় ডানপাশে বৃদ্ধাঙ্গুলের ছাপ রয়েছে। এছাড়া মারপিটের বিষয়টি শিশু নেহা পুলিশকে জানিয়েছেন। তবে মৃত্যুঞ্জয়ের ছোট ভাই আকাশ দত্তের দাবি, রবিবার দুপুরে মৃত্যুঞ্জয়ের সাথে চুমকির ঝগড়া হয়েছিলো। পরে রাতের খাবার সেরে চুমকি নিজের ঘরে ঘুমাতে যায়। আর মৃত্যুঞ্জয় অন্যঘরে ঘুমায়। একপর্যায়ে রাত ১২টার দিকে চুমকিকে ঝুলে থাকতে দেখেন তারা।

দ্রুত তাকে উদ্ধার করে মণিরামপুর হাসপাতালে নেয়া হলে জরুরি বিভাগের চিকিৎসক ডাঃ সুমন নাগ চুমকিকে মৃত ঘোষণা করে।ডাঃ সুমন নাগ জানিয়েছেন, চুমকিকে হাসপাতালে আনার আগেই মারা গিয়েছিল। ওই গৃহবধূর গলায় দাগ রয়েছে।এই দিকে এই ঘটনায় আত্মহত্যার প্ররোচনা দায়ে স্বামীসহ ৩ জনকে আসামীকে থানায় মামলা হয়েছে।

তদন্তের স্বার্থে বাকীদের নাম প্রকাশ করতে অনিহা প্রকাশ করে, থানার ওসি (তদন্ত) সিকদার মতিয়ার রহমান। থানার ওসি রফিকুল ইসলাম জানিয়েছেন, নিহত গৃহবধূর স্বামীকে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।একই সাথে নিহত গৃহবধূর মরদেহ ময়না তদন্তের জন্য যশোর ২৫০ শয্যা হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

ঝিনাইদহ মহেশপুরে যথাযথ মর্যাদায় বিএনপির ৪২তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন

 ঝিনাইদহ মহেশপুরে যথাযথ মর্যাদায় বিএনপির ৪২তম  প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন





খোন্দকার আব্দুল্লাহ বাশার। 

খুলনা ব্যুরো প্রধান।

ঝিনাইদহের মহেশপুর উপজেলা ও পৌর বিএনপির উদ্দোগে  বিএনপির ৪২তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন করা হয়েছে। 

মঙ্গলবার  সকাল ১০টার সময়  উপজেলা বিএনপির কার্যালয়ে দলীয় ও জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়। এর পর আলোচনা সভা,কেককাটা ও দোয়া মাহফিলের মাধ্যমে প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন করা হয়েছে। 

উপজেলা বিএনপির আহবায়ক এস এম শাহজামান মোহনের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন সদস্য সচিব মেহেদী হাসান রনি, , যুগ্ন আহবায়ক মাহফুজুল হক খান বাবু, যুগ্ন আহবায়ক দবীর উদ্দিন বিশ্বাস , পৌর বিএনপির আহবায়ক এ্যাডঃ আমিরুল ইসলাম খান চুন্নু, সদস্য সচিব সোহাগ খান , যুগ্ন আহবায়ক গোলাম ফারুক খান যুগ্ন আহবায়ক মাহমুদুর রহমান ফোটান, ,যুগ্ন আহবায়ক সম্পাদিকা নারগিস সুলতানা দিপা, পৌর বিএনপির যুগ্ন আহবায়ক আনিসুর রহমান রিপন ,আবুতাহের শরিফ,বিএনপি নেতা নাজমুল হুদা পান্তাপাড়া। এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন এসবিকে ইউনিয়নের আহবায়ক আব্দুর রহিম,সদস্য সচিব শাহাদত হোসেন, ফতেপুর ইউনিয়নের  সম্পাদক সেলিম রেজা, মান্দারবাড়ীয়া ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি এস এম হোসেন জগলুল পাশা ,সম্পাদক মোমিনুর রহমান ,বাশবাড়ীয়া সাধারণ সম্পাদক এ্যাডঃ আব্বাস উদ্দিন, নেপা ইউনিয়ন সভাপতি মহি উদ্দিন মহি, উপজেলা যুবদলের  আহবায়ক জিয়াউর রহমান জিয়া,সদস্য সচিব  হাজী ফয়সাল  যুগ্ন আহবায়ক বাবুল হোসেন ,পৌর যুবদলের আহবায়ক আশরাফুল ইসলাম, সদস্য সচিব হারুনুর রশিদ,যুগ্ন আহবায়ক হাবিবুর রহমান বুল্লা , ছাত্র দলের সাবেক আহবায়ক আলফারুক বাবু ,যুগ্ন আহবায়ক শেখ মোহাম্মদ এরশাদ হোসন, তারেক পরিষদের সাধারণ সম্পাদক রবিউল ইসলাম প্রমুখ।

পরে শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের রুহের মাগফেরাত কামনা ও গণতন্ত্রের মা খালেদা জিয়ার আশু রোগমুক্তি কামনা করে বিশেষ দোয়া ও মোনাজাত করা হয়।

সিরাজগঞ্জে মহিলা মেম্বরের বাড়ি থেকে বস্তা (ভিজিডি) চাল উদ্ধার

সিরাজগঞ্জে মহিলা মেম্বরের বাড়ি থেকে  বস্তা (ভিজিডি) চাল উদ্ধার




  মাসুদ রানা সিরাজগঞ্জ জেলাপ্রতিনিধিঃ 

সিরাজগঞ্জের চৌহালীতে ইউনিয়ন পরিষদের মহিলা মেম্বার জহুরা বেগমের বাড়ি থেকে থেকে সরকারী (ভিজিডি) ৪৭ বস্তা চাল উদ্ধার করেছে ভ্রাম্যমান আদালত।

সোমবার (৩১ আগষ্ট) রাতে চৌহালী উপজেলার খাষপুকুরিয়া ইউনিয়ন পরিষদ সংলগ্ন মহিলা মেম্বার জহুরা বেগমের বাড়ি থেকে চাল উদ্ধার করা হয়।

চৌহালী উপজেলার নির্বাহী অফিসার ও ভ্রাম্যমান আদালতের বিচারক মোছা. আফসানা ইয়াসমিন জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মহিলা মেম্বার জহুরা বেগমের বাড়িতে অভিযান চালানো হয়।

তখন ইউএনও ও পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে ঐ নারী ইউপি সদস্যা পালিয়ে যায়। এসময় তার ঘরের মধ্য থেকে ভিজিডির ৩০ কেজি ওজনের ৪৭ বস্তায় (১৪১০ কেজি) চাল উদ্ধার করা হয়।

এ ব্যাপারে খাসপুখুরিয়া ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল মজিদ সরকার জানান, উদ্ধারকৃত চালগুলো বিতরনের সময় আমার এখান থেকেই কেনা হয়েছিল। আমি বাধা দিলেও চাল ক্রয়-বিক্রয় মজুদ কারীরা শোনেনা। একাজে আমি জড়িত নই।

এ ব্যাপারে চৌহালী উপজেলা নির্বাহী অফিসার আফসানা ইয়াসমিন আরো জানান, আমরা জানা মাত্রই অভিযান চালিয়ে চালগুলো উদ্ধার করেছি এবং অসহায়দের জন্য বরাদ্ধের চাল আত্মসাৎ চেষ্টার ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

চোর দের ছুরির আঘাতে একই পরিবারের ৩ জন আহত

চোর দের ছুরির আঘাতে একই পরিবারের ৩ জন  আহত


 



রাজশাহী ব্যুরো

চোরদের ছুরির আঘাতে গুরুতর আহত হয়েছেন একই পরিবারের চার জন। সোমবার (৩১ আগস্ট) ভোর রাতে নওগাঁ শহরের চকবাড়িয়া মহল্লায় বসবাসরত সরকারি কর্মচারী মোঃরুহুল কুদ্দুসের বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।


আহতরা বাড়ির মালিক  মোঃ রহুল কুদ্দুস, তার স্ত্রী মাহাফুজা বেগম ও কন্যা আঁখি আক্তার। আহতদের কে নওগাঁ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এদের মধ্যে মোঃরুহুল কুদ্দুস  আশংকাজনক হওয়ায় তাকে রাজশাহী মেডিকেলে স্থানান্তর করা হয়েছে। তবে বিকেল ৫টা পর্যন্ত চোরদের কাহাকেউ গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ।


জানা যায়, একদল চোর   সোমবার ভোর ৪টার দিকে ওই বাড়ির সিঁড়ি ঘরের দেয়াল ভেঙ্গে ফেলে এক চোর বাড়ির ভিতরে প্রবেশ করে। অপর চোরেরা বাইরে অপেক্ষা করে। এসময় মোঃরুহুল কুদ্দুসের কন্যা আঁখি আক্তার টের পেয়ে চিৎকার শুরু করলে ওই চোর তাকে ছুরি দারা আঘাত করে। 

এসময় মোঃ রুহুল কুদ্দুস এগিয়ে আসলে তাকেও ছুরি দারা আঘাত করে সে। পালানোর  সময় মাহাফুজা বেগমকেও ছুরি দারা আঘাত করে। এসময় বাইরের চোরদের ইট-পাটকেলের নিক্ষেপের ফলে মারাত্মক আহত হন তিনি।


নওগাঁ সদর মডেল থানার অফিসার্স ইনচার্জ মোঃ সোহরাওয়ার্দী হোসেন বলেন, সংবাদ পেয়ে ওই রাতেই ঘটনাস্থল পরিদর্শন করা হয়েছে। চোরদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

নওগাঁর আত্রাইয়ে আবারও সেই অসহায় বৃদ্ধা মায়ের পাশে দাঁড়াল সিংগাপুর প্রবাসী

 নওগাঁর আত্রাইয়ে আবারও সেই অসহায় বৃদ্ধা মায়ের পাশে দাঁড়াল সিংগাপুর প্রবাসী



মোঃ ফিরোজ হোসাইন 

  রাজশাহী ব্যুরো

নওগাঁ জেলার আত্রাই উপজেলার সেই অসহায় বৃদ্ধা মায়ের পাশে দাঁড়াল এক সিংগাপুর প্রবাসী ও বাংলাদেশ অনলাইন রিপোর্টার্স ক্লাব আত্রাই শাখা।

ফেসবুকে পোস্ট ও অনলাইনে নিউজ দেখে অবশেষে আবারও অসহায় জহুরা বেওয়া (৭০) মানবতার হাত বাড়িয়ে পাশে দাঁড়িয়েছে সিংগাপুর প্রবাসী মো.ওহিদুর রহমান রোহিত ও বাংলাদেশ অনলাইন রিপোর্টার্স ক্লাব আত্রাই উপজেলা শাখা । এর অংশ হিসেবে সোমবার( ৩১ আগষ্ট) বিকেলে ওই নারীর হাতে আনুষ্ঠানিকভাবে একটি হুইলচেয়ার ও ফলমূল সহ নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র তুলে দেওয়া হয়েছে। জহুরা বেওয়া হাটকালুপাড়া ইউনিয়নের -হাটুরিয়া গ্রামের মৃত সৈয়দ আলীর স্ত্রী।

জানা যায়, জহুরা বেওয়া ৪ সন্তানের জননী । কয়েক বছর আগে তার স্বামী সৈয়দ আলী মারা যান। এরপর থেকে সন্তানেরা দেখভাল না করায় খুবই কষ্টে দিন কাটছিল জহুরার। একপর্যায়ে এ নিয়ে গত ১৩আগষ্ট বৃহস্পতিবার সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ও গণমাধ্যমে লেখালেখি হলে বিষয়টি স্থানীয় উপজেলা ও পুলিশ প্রশাসনের নজরে পড়ে। উপজেলা আত্রাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো.ছানাউল ইসলাম সহ আত্রাই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোসলেম উদ্দিন ওই বৃদ্ধার বাড়িতে ছুটে যান। তাছাড়া উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকেও ওই নারীর খোঁজ-খবর নিয়ে তার পাশে দাঁড়ানোর আগ্রহ প্রকাশ করা হয়। উদ্ভূত এমন পরিস্থিতিতে গত ২২ আগষ্ট বৃহস্পতিবার বিকালে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে অসহায় জহুরার হাতে আনুষ্ঠানিকভাবে এক বস্তা চাউল সহ নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র তুলে দেওয়া হয়। এর একদিন পরে আত্রাই থানার ওসি ও নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিস দেয় ওই বৃদ্ধাকে।

নিজ গ্রামে জহুরার হাতে ওই হুইলচেয়ার সহ নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র সিংগাপুর প্রবাসী ওহিদুর রহমান রোহিত এর পক্ষে তুলে দেন আত্রাই প্রেসক্লাবের সদস্য ও বাংলাদেশ অনলাইন রিপোর্টার্স ক্লাব উপজেলা শাখা আত্রাই এর সভাপতি মোঃ আবু হেনা মোস্তফা কামাল,আত্রাই প্রেসক্লাবের প্রচার সম্পাদক ও রিপোর্টার্স ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক এমরান মাহমুদ প্রত্যয়,

প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মোঃ নাজমুল হোসেন সেন্টু,আত্রাই প্রেসক্লাবের সহসভাপতি ও রিপোর্টার্স ক্লাবের কোষাধ্যক্ষ মোঃ ছাবেদ আলী,আত্রাই প্রেসক্লাবের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও রিপোর্টার্স ক্লাবের দপ্তর সম্পাদক মোঃ ফিরোজ হোসাইন, রিপোর্টার্স ক্লাবের সদস্য আব্দুল জববার,মোঃ শরিফুল ইসলাম শরিফ, বৃদ্ধার প্রতিবেশী মোঃ মমতাজ হোসেন রতন,আব্দুল খালেক প্রমূখ।

সিএমপির নতুন কমিশনার সালেহ মো. তানভীর, রেঞ্জ ডিআইজি আনোয়ার

সিএমপির নতুন কমিশনার সালেহ মো. তানভীর, রেঞ্জ ডিআইজি আনোয়ার




চট্টগ্রাম প্রতিনিধি 

মোঃ হাসান রিফাতঃ

চট্টগ্রাম নগর পুলিশের কমিশনার (সিএমপি) মাহাবুবর রহমানকে বদলি করা হয়েছে। ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার সালেহ মোহাম্মদ তানভীরকে সিএমপির নতুন কমিশনার হিসেবে পদায়ন করা হয়েছে।


এছাড়া গাজীপুর মহানগর কমিশনার আনোয়ার হোসেনকে চট্টগ্রাম রেঞ্জ ডিআইজি পদে পদায়ন করা হয়েছে। বদলি করা হয়েছে চট্টগ্রাম রেঞ্জ ডিআইজি খন্দকার গোলাম ফারুককে।




সোমবার (৩১ আগস্ট) স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জন নিরাপত্তা বিভাগের উপ সচিব ধনঞ্জয় কুমার দাস স্বাক্ষরিত এক আদেশে এ বদলি করা হয়।



এতে উল্লেখ করা হয়, চট্টগ্রাম নগর পুলিশের কমিশনার মাহবুবর রহমানকে শিল্পাঞ্চল পুলিশের উপ মহাপরিদর্শক এবং চট্টগ্রাম রেঞ্জ ডিআইজি খন্দকার গোলাম ফারুককে রাজশাহীর সারদায় অবস্থিত বাংলাদেশ পুলিশ একাডেমির উপ মহাপরিদর্শক পদে বদলি করা হয়েছে।


এর আগে ২০১৮ সালের ২৭ মে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক আদেশে সিএমপি কমিশনার হিসেবে যোগদান করে মাহাবুবর রহমান। একই বছরের ২ জুলাই পুলিশের চট্টগ্রাম রেঞ্জের উপ-মহাপরিদর্শক (ডিআইজি) হিসেবে যোগদান করেন খন্দকার গোলাম ফারুক।

নন্দীগ্রাম ইউনাইটেড প্রেসক্লাবের সভাপতি সাধারণ সম্পাদকের সাথে সৌজন্য সাক্ষাৎ

নন্দীগ্রাম ইউনাইটেড প্রেসক্লাবের সভাপতি সাধারণ সম্পাদকের সাথে সৌজন্য সাক্ষাৎ

নন্দীগ্রাম(বগুড়া)প্রতিনিধিঃ বগুড়ার নন্দীগ্রাম ইউনাইটেড প্রেসক্লাবে আজ ১ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার সকাল ৯ ঘটিকার সময় নন্দীগ্রাম ইউনাইটেড প্রেসক্লাবের সভাপতি আমিনুল ইসলাম জুয়েল, সাধারন সম্পাদক আবু সাঈদ এর সাথে অনানুষ্ঠিক ভাবে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন এবং ফুলের তোড়া দিয়ে শুভেচ্ছা জানান প্রেসক্লাবের নেতৃবৃন্দ।এসময় উপস্থিত ছিলেন নন্দীগ্রাম ইউনাইটেড প্রেসক্লাবের যুগ্মসাধারণ সম্পাদক মোঃ মিজানুর রহমান, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক মোঃ আব্দুল আহাদ প্রামানিক, দপ্তর সম্পাদক মোঃ হাবিবুর রহমান, তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক মোঃ এমদাদুল হক প্রমুখ।

এসময় নন্দীগ্রাম ইউনাইটেড প্রেসক্লাবের সভাপতি আমিনুল ইসলাম জুয়েল  সাধারণ সম্পাদক আবু সাঈদের  সাথে বিভিন্ন বিষয়ে একান্তে বেশ আন্তরিকতা  পূর্ণ আলোচনা করে ক্লাবের নেতৃবৃন্দ।

ভারতের প্রথম বাঙালী রাষ্ট্রপ্রতি প্রণব মুখোপাধ্যায়, বাংলাদেশের অকৃত্রিম বন্ধু ছিলেন

ভারতের প্রথম বাঙালী রাষ্ট্রপ্রতি প্রণব মুখোপাধ্যায়, বাংলাদেশের অকৃত্রিম বন্ধু ছিলেন



নিউজ ডেস্কঃ স্বাধীনতা সংগ্রামী বাবার পদাঙ্ক অনুসরণ করে পাঁচ দশকেরও বেশি সময় রাজনীতিতে সক্রিয় থেকে প্রথম বাঙালি হিসেবে ভারতের রাষ্ট্রপতির পদে আসীন প্রণব মুখোপাধ্যায় বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামে বন্ধু হয়ে ছিলেন পাশে।

৮৪ বছর বয়সে ফুসফুসের সংক্রমণের কারণে ‘সেপটিক শক’ থেকে কোমায় চলে গিয়েছিলেন তিনি। দিল্লির আর্মি হসপিটাল রিসার্চ এন্ড রেফারেলে সোমবার তার বর্ণাঢ্য রাজনৈতিক জীবনের অবসান ঘটে।

ভারতের বিভিন্ন সরকারে পররাষ্ট্র, প্রতিরক্ষা, বাণিজ্য ও অর্থের মতো গুরুত্বপূর্ণ সব মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করা বিরল এ রাজনীতিকের প্রজ্ঞা, জ্ঞান, দক্ষতা আর ত্যাগের ভূয়সী প্রশংসা পাওয়া যাবে বিরোধী মত ও দর্শনের রাজনীতিকদের মুখ থেকেও, যা তার ভারতরত্ন খেতাব পাওয়ার যথার্থতা তুলে ধরে।

পশ্চিম বাংলার এই কংগ্রেস নেতা একাত্তরে পাশে দাঁড়িয়ে এপার বাংলার মানুষকেও কৃতজ্ঞতার বন্ধনে আবদ্ধ করেন। তার স্বীকৃতি স্বরূপ ২০১৩ সালে তাকে আনুষ্ঠানিকভাবে ‘বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধ সম্মাননা’ দেওয়া হয়।

বিয়ের সূত্রেও বাংলাদেশের সঙ্গে বন্ধনে জড়িয়ে ছিলেন প্রণব মুখোপাধ্যায়, তার স্ত্রী শুভ্রা ঘোষ ছিলেন বাংলাদেশের নড়াইলের সন্তান। ২০১৩ সালে বাংলাদেশে এসে নড়াইলের ভদ্রবিলায় শ্বশুরালয়েও ঘুরে গিয়েছিলেন বাংলাদেশের ‘জামাইবাবু’ প্রণব মুখোপাধ্যায়।

পশ্চিমবঙ্গের বীরভূম জেলার মিরাটি গ্রামে ১৯৩৫ সালের ১১ ডিসেম্বর জন্ম নেওয়া প্রণবের বাবা কমদা কিঙ্কর মুখোপাধ্যায়ের রাজনৈতিক জীবনও ছিল বর্ণিল। ব্রিটিশবিরোধী স্বাধীনতা সংগ্রামে অংশ নেওয়ায় বেশ কয়েকবার কারাবরণও করতে হয় এ কংগ্রেস নেতাকে। প্রণবের মায়ের নাম রাজলক্ষ্মী মুখোপাধ্যায়।

ইতিহাস ও রাষ্ট্রবিজ্ঞানে স্নাতকোত্তর প্রণব মুখোপাধ্যায় (পল্টু) কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ে থেকে আইন বিষয়েও ডিগ্রি নিয়েছিলেন। কিছুদিন কলেজের শিক্ষক ও সাংবাদিক হিসেবে কাজ করলেও তার আগ্রহ ছিল রাজনীতিতে।

সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধীর স্নেহধন্য বীরভূমের পল্টু ১৯৬৯ সালে সেই যে কংগ্রেসের প্রতিনিধি হয়ে রাজ্যসভায় গিয়েছিলেন; তার পরের কয়েক দশক দল, পার্লামেন্ট আর সরকারের নানান দায়িত্ব সামলাতেই ব্যস্ত থাকতে হয়েছে তাকে।

১৯৭৮ থেকে ১৯৭৯ পর্যন্ত সর্বভারতীয় কংগ্রেসের কোষাধ্যক্ষ ছিলেন। ১৯৮৫ সালে তিনি পশ্চিমবঙ্গ প্রদেশ কমিটির সভাপতিও হন। একবার দল থেকে বিতাড়িতও হয়েছিলেন, ফেরেন ১৯৮৯ সালে।

২০০০ সালে অগাস্টে ফের প্রদেশ কংগ্রেসের সভাপতির দায়িত্ব পান, সেবার এ পদে থাকেন এক দশক। ১৯৭৮-১৯৮৬ এবং ১৯৯৭-২০১২ দুই মেয়াদে কংগ্রেসের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য হিসেবেও তিনি দুই যুগেরও বেশি সময় দায়িত্ব পালন করেছেন।

১৯৮২ সালে তিনি প্রথমবার অর্থমন্ত্রী হন। সেসময় ইন্দিরা গান্ধীর মন্ত্রিসভার এ সদস্য ১৯৮০ থেকে ১৯৮৫ সাল পর্যন্ত পার্লামেন্টের উচ্চকক্ষ রাজ্যসভার সংসদ নেতাও ছিলেন। ভারতের রিজিওনাল রুরাল ব্যাংক, এক্সিম ব্যাংক, ন্যাশনাল ব্যাংক ফর এগ্রিকালচার অ্যান্ড রুরাল ডেভেলপমেন্ট গঠনেও তার ভূমিকা ছিল অনস্বীকার্য।

১৯৯১ থেকে ১৯৯৬ সাল পর্যন্ত ভারতের পরিকল্পনা কমিশনের ডেপুটি চেয়ারম্যান, ১৯৯৩ থেকে ১৯৯৫ পর্যন্ত বাণিজ্যমন্ত্রী, ১৯৯৫ থেকে ১৯৯৬ পর্যন্ত পররাষ্ট্রমন্ত্রী, ২০০৪ থেকে ২০০৬ পর্যন্ত প্রতিরক্ষামন্ত্রী এবং ২০০৬ থেকে ২০০৯ পর্যন্ত ফের ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন প্রণব।

২০০৯ থেকে ২০১২ পর্যন্ত তিন বছর অর্থমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করা এ কংগ্রেস নেতা ২০০৪ সাল থেকে পরের ৮ বছর লোকসভার সংসদ নেতা ছিলেন।

৫ বার রাজ্যসভার সদস্য ও দুই বার লোকসভার সদস্য হওয়া প্রণব প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আগে ২০১২ সালের জুনে দল থেকে পদত্যাগ করেন। পরের মাসেই ভারতের ত্রয়োদশ রাষ্ট্রপতি হিসেবে তার মেয়াদ শুরু হয়।

আন্তর্জাতিক অঙ্গনে ব্যাপক পরিচিত এ বাঙালি রাজনীতিক আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল (আইএমএফ), বিশ্ব ব্যাংক, এশীয় উন্নয়ন ব্যাংক ও আফ্রিকান উন্নয়ন ব্যাংকের বোর্ড অব গভর্নরসেও ছিলেন।

১৯৮২, ১৯৮৩ ‍ও ১৯৮৪ সালে কমনওয়েলথ অর্থমন্ত্রীদের সম্মেলন, ১৯৯৪, ১৯৯৫, ২০০৫ ও ২০০৬ সালে জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদ, নিউ জিল্যান্ডের অকল্যান্ডে ১৯৯৫ সালে অনুষ্ঠিত কমনওয়েলথ সরকারপ্রধানদের সম্মেলন, একই বছর কলম্বোয় জোট নিরপেক্ষ দেশগুলোর পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের সম্মেলন এবং ১৯৯৫ সালে বান্দুংয়ে আফ্রো-এশীয় সম্মেলনের ৪০তম বার্ষিকীর অনুষ্ঠানে ভারতীয় প্রতিনিধিদলের নেতৃত্ব দিয়েছিলেন।

প্রণব ২০০৮ সালে ভারতের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ বেসামরিক পুরস্কার পদ্মবিভূষণ পান। তিনি ১৯৯৭ সালে সেরা সাংসদ এবং ২০১১ সালে ভারতের সেরা প্রশাসকের পুরস্কারেও ভূষিত হয়েছিলেন। ২০১৯ সালে প্রণব ভারতের সর্বোচ্চ বেসামরিক খেতাব ভারতরত্ন পান।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়, রাশিয়ান ডিপ্লোমেটিক অ্যাকাডেমি, বেলারুশ স্টেট বিশ্ববিদ্যালয়, জর্ডান বিশ্ববিদ্যালয়, ফিলিস্তিনের আল-কুদস বিশ্ববিদ্যালয়, ইসরায়েলের হিব্রু বিশ্ববিদ্যালয় ও নেপালের কাঠমান্ডু বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সম্মানসূচক বিভিন্ন ডিগ্রি পাওয়া প্রণব অল্প কিছু দেশ ছাড়া বিশ্বের প্রায় সব দেশই ভ্রমণ করেছেন বলে তার ওয়েবসাইটে লেখা রয়েছে।

১৯৮৪ সালে নিউ ইয়র্কভিত্তিক ‘ইউরো মানি’ জার্নালের এক জরিপে প্রণব সেসময় বিশ্বের সেরা ৫ অর্থমন্ত্রীর একজন মনোনীত হয়েছিলেন। ‘ইমার্জিং মার্কেটস’ জার্নাল তাকে ২০১০ সালে এশিয়ার সেরা অর্থমন্ত্রী ঘোষণা করেছিল।

২০১৭ সালের জুলাইয়ে রাষ্ট্রপতির মেয়াদ শেষ হওয়া এ রাজনীতিকের লেখা বইয়ের মধ্যে আছে- বিয়ন্ড সার্ভাইভাল: ইমার্জিং ডাইমেনশনস অব ইন্ডিয়ান ইকোনমি, অব দ্য ট্র্যাক, সাগা অব স্ট্রাগল অ্যান্ড স্যাক্রিফাইস, চ্যালেঞ্জেস বিফোর দ্য নেশন, থটস অ্যান্ড রিফ্লেকশনস, দ্য ড্রামাটিক ডিকেড: দ্য ইন্দিরা গান্ধী ইয়ারস, দ্য টার্বুলেন্ট ইয়ারস ১৯৮০-১৯৯৬ ও দ্য কোয়ালিশন ইয়ারস ১৯৯৬-২০১২।

বাংলাদেশের বন্ধনে জড়িয়ে

মুক্তিযুদ্ধকালে পশ্চিমবঙ্গের কংগ্রেস নেতা প্রণব মুখোপাধ্যায় ছিলেন রাজ্যসভার সদস্য। ভারতের অনেক রাজনীতিকের মতো তখন মুক্তিকামী বাঙালির পক্ষে দাঁড়িয়েছিলেন তিনি।

একাত্তরের সেপ্টেম্বর মাসের শুরুতে ফ্রান্সে ইন্টার পার্লামেন্টারি ইউনিয়নের সম্মেলনে অংশ নিয়ে বাংলাদেশের স্বাধীনতার পক্ষে এবং পাকিস্তানিদের অত্যাচার-নির্যাতনের বিরুদ্ধে জনমত গঠনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখেন তিনি।

একই সময়ে যুক্তরাজ্য ও জার্মানি সফরে গিয়ে সেখানকার সরকার প্রধান ও সংসদ সদস্যদের কাছে বাংলাদেশের তখনকার পরিস্থিতি উপস্থাপনে ভূমিকা রাখেন তিনি।

ওই সময়ে ত্রিপুরা, আসাম ও মেঘালয়ে শরণার্থী শিবির পরিদর্শনে গিয়ে স্থানীয় প্রশাসনের সঙ্গে সমন্বয়ের মাধ্যমে সেখানকার পরিবেশ-পরিস্থিতি ভালো করায় ভূমিকা রাখেন তিনি।

নিজের আত্মজীবনীমূলক গ্রন্থ ‘দ্য ড্রামাটিক ডিকেড: দ্য ইন্দিরা গান্ধী ইয়ারস’ এ একটি অধ্যায়ই বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে লিখেছেন প্রণব মুখোপাধ্যায়।

একাত্তরে রাজ্যসভার সদস্য প্রণব লিখেছেন, “বাজেট অধিবেশন চলাকালে আমি রাজ্যসভায় বাংলাদেশ সমস্যা নিয়ে আলোচনার উদ্যোগ নিই। আমি বলেছিলাম, ভারতের উচিত বাংলাদেশের প্রবাসী মুজিবনগর সরকারকে অবিলম্বে স্বীকৃতি দেওয়া। আমি সংসদকে এটাও স্মরণ করিয়ে দিয়েছিলাম যে বিশ্ব ইতিহাসে এ ধরনের ঘটনায় হস্তক্ষেপ করার বহু নজির আছে।’

বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে অবদান রাখা বিদেশি বন্ধু হিসেবে ২০১৩ সালের ৪ মার্চ বাংলাদেশের তখনকার রাষ্ট্রপতি জিল্লুর রহমান ভারতের তৎকালীন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়ের হাতে ‘বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধ সম্মাননা’ তুলে দেন।

বাংলাদেশের জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে পঁচাত্তরে হত্যা করার পর শেখ হাসিনা ও শেখ রেহানার পাশেও দাঁড়িয়েছিলেন প্রণব মুখোপাধ্যায়।

সেই সম্পর্কের কথা তিনি লিখে গেছেন তার বইয়ে। বাংলাদেশের রাজনীতিতে শেখ হাসিনার কঠিন সময়েও বন্ধু হয়ে তিনি দাঁড়িয়েছিলেন পাশে।

প্রণব লিখেছেন, “শেখ হাসিনা আমার ঘনিষ্ঠ পারিবারিক বন্ধু এবং আমি যখন পররাষ্ট্রমন্ত্রী, বাংলাদেশে একটি অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন দেওয়ার ব্যাপারে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের ওপর আন্তর্জাতিক চাপ সৃষ্টি করতে ভারত সহায়তা করেছিল।”

২০০৭-০৮ সালের জরুরি অবস্থার সময়কার পরিস্থিতির বর্ণনা করতে গিয়ে তিনি লিখেছেন, “যখন কতিপয় আওয়ামী লীগ নেতা তাকে (শেখ হাসিনা) ত্যাগ করছিলেন, আমি তাদের ভর্ৎসনা করে বলি, যখন কেউ বিপদে পড়েন, তখন তাকে ত্যাগ করা অনৈতিক।”

প্রণব মুখোপাধ্যায়ের স্ত্রী রবীন্দ্র সঙ্গীত শিল্পী শুভ্রা পাঁচ বছর বয়স পর্যন্ত নিজের গ্রাম ভদ্রবিলায় কাটিয়েছিলেন। এরপর নানা বাড়িতে থেকে স্থানীয় চাঁচড়া প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণিতে লেখাপড়া করেন। পরে পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে ভারত চলে যান।

প্রণব ১৯৫৭ সালের ১৩ জুলাই শুভ্রা ঘোষকে বিয়ে করেন। ওই সময় তারা কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়তেন। তাদের দুই ছেলে অভিজিৎ মুখোপাধ্যায় ও সুরজিৎ মুখোপাধ্যায় এবং এক মেয়ে শর্মিষ্ঠা মুখোপাধ্যায়।

শুভ্রা মুখোপাধ্যায়ের মৃত্যুর বছর দুয়েক আগে ২০১৩ সালে প্রণব সস্ত্রীক নড়াইলের ভদ্রবিলায় এসে শ্বশুরালয়ও ঘুরে যান।

তার আগে ১৯৯৬ সালে মেয়ে শর্মিষ্ঠাকে নিয়ে বাবার বাড়িতে বেড়িয়ে যান শুভ্রা।

সিরাজগঞ্জ একক সংঘ ক্লাবের উদ্যাগে ফিরোজ আহমেদ খান'র সুস্থতায় দোয়া মাহফিল

 সিরাজগঞ্জ একক সংঘ ক্লাবের উদ্যাগে ফিরোজ আহমেদ খান'র সুস্থতায় দোয়া মাহফিল




 মাসুদ রানা সিরাজগঞ্জ জেলাপ্রতিনিধিঃ সিরাজগঞ্জে  একক সংঘ ক্লাবের উদ্যাগে  অন্যতম পৃষ্ঠপোষক মোঃ ফিরোজ  আহমেদ  খান এর রোগমুক্তি ও সুস্থতা কামনায় দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত  হয়েছে৷ 


সোমবার ( ৩১ আগষ্ট) বাদ আসর একক সংঘ ক্লাব হলরুমে   আয়োজিত  দোয়া মাহফিলে প্রধান  উপদেষ্টা   পৌর মেয়র সৈদয় আব্দুর রউফ  মুক্তা,সাধারণ  সম্পাদক  গাজী শফিকুল  ইসলাম  শফী, প্রচার  সম্পাদক  রেজাউল  করিম , কার্যকারী সদস্য  ফরহাদ হোসেন, আমজাদ হোসেন , কামরান আহমেদ , হেলালুজ্জামান হিরু,  কোষাধ্যক্ষ 

আব্দুস সাত্তার সহ ক্লাব সকল সদস্যরা উপস্থিত  ছিলেন ।  


বিশেষ  দোয়া ও মোনাজাত  পরিচালনা  করেন , মুক্তিযোদ্ধা সন্তান  মাওলানা  জাহাঙ্গীর  আলম । 

মাহফিলে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণকারী সবার আত্মার শান্তি কামনা এবং চিকিৎসাধীন সবার আশু সুস্থতা কামনা করা হয়।

পটিয়ার মেলঘর এলাকায় প্রতিপক্ষের হামলায় আহত-২ গোয়াল ঘর ভাংচুরঃ থানায় অভিযোগ

 পটিয়ার মেলঘর এলাকায় প্রতিপক্ষের হামলায় আহত-২  গোয়াল ঘর ভাংচুরঃ থানায় অভিযোগ



সেলিম চৌধুরী, পটিয়াঃ-  প্রতিনিধিঃ- চট্টগ্রামের পটিয়া উপজেলার বড়লিয়া ইউনিয়নে ৯ নম্বর  ওয়ার্ডে মেলঘর ছিদ্দিক মেম্বারের বাড়িতে পুর্বশক্রতার জের ধরে প্রতিপক্ষরা সন্রাসী কায়দায় হামলা চালিয়ে মোঃ আলমগীর  ও তার পিতা আবুল কাসেম কে দেশীয় অস্ত্রশস্র দিয়ে হামলা চালিয়ে রক্তাক্ত গুরুতর জখম করেছে মর্মে অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনাটি ঘটেছে গত ২৮ আগষ্ট সকাল  অনুমান সকাল সাড়ে ১০ টার দিকে আবুল কাসেম এর বসতঘরের উঠানে । এ ঘটনায় আবুল কাসেম এর ছেলে  মোঃ আলমগীর বাদী হয়ে একই এলাকার  শেখ মোহাম্মদ এর ছেলে আবু বক্কর, নুরুল ইসলামের ছেলে তৌহিদুল ইসলাম,টুটুল হকের ছেলে মোঃ জাহিদুল ইসলাম, আশিয়া ইউনিয়নের রহিম সাহেবের বাড়ির আবদুস শুক্কুর এর ছেলে মোঃ জসিম  উদ্দিন  এর বিরুদ্ধে  পটিয়া থানায় অভিযোগ  দায়ের করেছে। পটিয়া থানার  দায়েরকৃত অভিযোগ সুএে জানায়ায়, আবুল কাসেম এর  সাথে  প্রতিপক্ষ শেখ মোহাম্মদ  ও আবু বক্কর এর মধ্যে  দীর্ঘদিন যাবত বাডি জায়গা নিয়ে  বিরোধ চলে আসছে। এর জের ধরে গত ২৮ আগষ্ট সকাল সাড়ে ১০ টার সময়  বেআইনি জনতা গঠন করে দেশীয়  অস্ত্রশস্র সজ্জিত হয়ে  আবুল কাসেম  এর গোয়ালঘর ভাংচুর তান্ডব চালিয়ে ৫০ হাজার টাকার ক্ষতিসাধন করে। এতে আবু কাসেম বাঁধা দিলে তাকে এলোপাতাড়ি কিল, ঘুষি, লাথি মেরে শরীরের বিভিন্ন  স্থানে  রক্তাক্ত গুরুতর জখম করে।  এ সময় আবুল কাসেমের চিৎকার শুনে তার ছেলে মোঃ আলমগীর এগিয়ে আসলে প্রতিপক্ষরা তাকেও  এলোপাতাড়ি পিটিয়ে জখম করে। পিতা পুএ 


প্রতিপক্ষের হামলায় মুমূর্ষু অবস্থায় পড়ে থাকলে প্রতিপক্ষরা আরো ব্যাপরোয়া হয়ে  আবুল কাসেম এর গৃহপালিত  পশুগুলোকে চরম মারধর করে বলে থানার দায়েরকৃত  অভিযোগ  সুএে প্রকাশ। এত কিছুর পরেও  বক্কর গং বসতঘরে অবরুদ্ধ  করে রাখে বলে আলমগীর জানান।বর্তমানে প্রতিপক্ষরা দেশীয়  অস্ত্র শস্র নিয়ে  এলাকায় মহড়া দিচ্ছে। এতে আবুল কাসেম এর  পরিবার  চরম নিরাপত্তাহীনতার মধ্যে রয়েছে। যে কোন মুহূর্তে আবারও হামলার আশংকা করছে আবুল কাসেম এর পরিবার । এ ব্যাপারে আহত পরিবার পটিয়ার এমপি জাতীয় সংসদের হুইপ আলহাজ্ব শামসুল হক চৌধুরীর হস্তক্ষেপ কামনা করেছে। বিষয়টি সত্যিতা নিশ্চিত করেন তদন্ত কর্মকর্তা পটিয়া থানার এস আই মামুন।তিনি  জানান অভিযোগ পেয়েছি তদন্ত চলছে ওসি সাহের সাথে আলোচনা করে দায়ী ব্যাক্তিদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এ ব্যাপারে বক্করের মোবাইলে একাধিকবার ফোন করে তার বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

জাপার মহাসচিব বাবলুর ছোট ভাই হাসান মাহমুদের রোগ মুক্তি কামনায় দোয়া মাহফিল

জাপার মহাসচিব বাবলুর ছোট ভাই  হাসান মাহমুদের রোগ মুক্তি কামনায় দোয়া মাহফিল



সেলিম চৌধুরী  পটিয়া প্রতিনিধিঃ জাতীয় পার্টির মহাসচিব সাবেক সফল  মন্ত্রী জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলুর ছোট ভাই বিশিষ্ট শিল্পপতি হাসান মাহমুদ চৌধুরী রোগ মুক্তি কামনায় ৩১ আগষ্ট সোমবার বিকেলে পটিয়া জাতীয় পার্টি  দক্ষিণ জেলার কার্য়লয়ে এক দোয়া মাহফিল জেলার আহবায়ক শামসুল আলম মাষ্টারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। এতে বক্তব্য রাখেন জেলা জাপার যুগ্ম আহবায়ক যথাক্রমে  আমান উল্লা আমান, আবদুস চাক্তার রনি, রফিক আহমদ চেয়ারম্যান, নুরুল ইসলাম কমিশনার, আলী আকবর চেয়ারম্যান, মোস্তাক আহমদ, মাহবুবর রহমান, প্রবাসী বদিউল আলম,জাহাঙ্গীর মেম্বার, দুলা মিয়া মেম্বার, নাছির উদ্দীন নাসু, আমিনুল ইসলাম ফারুকী, নুরুল আবছার, মোঃ হাসান, সাকি, আকাশ, তুহিন,  লিটন, কামাল উদ্দীন ফারুকী, আসিফ প্রমুখ।    

"জ্ঞান চর্চার জন্য ভালো মাধ্যম ক্লাবিং"- অধ্যাপক ড. মীজানুর রহমান

 "জ্ঞান চর্চার জন্য ভালো মাধ্যম ক্লাবিং"- অধ্যাপক ড. মীজানুর রহমান





জবি প্রতিনিধিঃ

নানান বিষয়ে জ্ঞান অর্জন করতে হলে শুধু বই পড়া নয়, নতুন নতুন মানুষের সাথে পরিচিত হয়ে এক সাথে কাজ করা তথ্য শেয়ার করা উচিত। আর এর অন্যতম মাধ্যমের সর্বোত্তম স্থান হলো ক্ল্যাবিং করা বা বিভিন্ন সংগঠনের সাথে যুক্ত থাকা, কেননা এখনই নানান বিভাগের শিক্ষার্থীদের একত্রিত হওয়ার সুযোগ তৈরি হয়। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ক্যারিয়ার ক্লাবের এলডিপি-২০ এর নিয়োগ ও নিয়োগ পরবর্তী অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেছেন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় উপাচার্য অধ্যাপক ডঃ মীজানুর রহমান।


করোনা মহামারীর সময় বিশ্ব যখন থমকে গেছে ঠিক তখনই জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ক্যারিয়ার ক্লাবের এলডিপি-২০ এর নিয়োগ ও নিয়োগ পরবর্তী অনুষ্ঠান জুম এপসের মাধ্যমে  শেষ হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় উপাচার্য অধ্যাপক ড মীজানুর রহমান। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন ক্লাবের মাননীয় প্রতিষ্ঠাকালীন চীফ মডারেটর, মডারেটর, অ্যালামনাই সদস্য ও সদ্য নিয়োগ প্রাপ্ত সদস্যবৃন্দ। 


প্রোগ্রাম সম্পর্কে জানতে চাওয়া হলে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ক্যারিয়ার ক্লাব (জেএনইউসিসি) এর সভাপতি জাহিদুল ইসলাম বলেন, নিঃসন্দেহে ক্যারিয়ার ক্লাবের ভার্চুয়াল নিয়োগ প্রক্রিয়ার মাধ্যমে শিক্ষার্থীর নতুন পরিবেশে নতুন কিছু শিখতে পেরেছে এবং পুরো বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩৪ টি ডিপার্টমেন্ট থেকে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ক্যারিয়ার ক্লাবের সাথে কাজ করার সুযোগ পেয়েছে যা সত্যিই অনেক বড় অর্জন। ভবিষ্যতে আমরা আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রীদের ক্যারিয়ার ডেভেলপমেন্ট নিয়ে আরো বড় প্রোগ্রাম নিয়ে হাজির হবো।


লিডারশীপ ডেভেলপমেন্ট প্রোগ্রাম জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ক্যারিয়ার ক্লাবের মেম্বারশিপ রিক্রুটমেন্ট প্রোগ্রাম এবং এখানে সুযোগ পাওয়া সকলে বিভিন্ন ওয়ার্কশপ, সেমিনার, বিভিন্ন গ্রুপ এক্টিভিটি ও মেন্টরিং সেশনের মাধ্যমে প্রায় এক বছর শেখার সুযোগ পাবে। এ বছর জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩৪ টি ডিপার্টমেন্ট থেকে ছাত্র-ছাত্রীরা এ সুযোগ পাবে।

পরীক্ষা নয় এই সময়ে মোঃআবু বকর সিদ্দীক

 পরীক্ষা নয় এই সময়ে  মোঃআবু বকর সিদ্দীক




পরীক্ষা নয় এই সময়ে,

করছি মোরা পণ।

আসুক যত ঝড়-তুফান,

করবো সবি দমন।


১৪ লক্ষ পরীক্ষার্থী,

একটা দুইটা নয়।

পরীক্ষা হলে জীবন যাবে,

সত্য কথা ভাই।


করোনা এলো সাজ সকালে,

হাজার রোগের ভীরে।

বিশ্ব জাহান লোকডাউনে,

এই রোগেরি ডরে।


সকল কথার আসল কথা,

দিবো নাকো পরীক্ষা।

লাগলে সময় পড়বো আরো,

তবুও করবো শিক্ষা

আশাশুনির আনুলিয়ায় চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী শাহাবুদ্দীনের বাড়ীতে হামলা ভাংচুর, লুটপাট, আহত-৪

 আশাশুনির আনুলিয়ায় চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী শাহাবুদ্দীনের বাড়ীতে  হামলা ভাংচুর, লুটপাট, আহত-৪






আহসান উল্লাহ বাবলু উপজেলা প্রতিনিধি  :  আশাশুনির আনুলিয়ায় বর্তমান ইউপি সদস্য ও চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী শাহাবুদ্দীন সানার বাড়ীতে বিএনপি নেতা আফজাল বাহিনীর হামলা ভাংচুর, লুটপাট, এক গৃহবধুসহ চারজন আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। এ হামলার ঘটনাটি ঘটেছে সোমবার সন্ধায় আশাশুনি উপজেলার আনুলিয়া ইউনিয়নে মির্জাপুর গ্রামে। এব্যাপারে ডাক্তার মোসলেম উদ্দিন সহ গ্রামের একাধিক ব্যাক্তি এ প্রতিবেদককে জানান ৪নং ওয়ার্ডের বর্তমান ইউপি সদস্য ও আগামী ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদপ্রাথর্ী মির্জাপুর গ্রামে শাহাবুদ্দীন সানার সাথে একই গ্রামের আতিয়ার রহমান সানার পুত্র সাবেক ইউপি সদস্য আনুলিয়া ইউনিয়ন বিএনপি সহ-সভাপতি আফজাল সানা  ইউপি নির্বাচন কেন্দ্রিক ও অনিয়ম, দুর্নীতি সহ বিভিন্ন মামলা মোকদ্দমা নিয়ে দীর্ঘদিন বিরোধ চলে আসছিল। মামলা তুলে নিতে বিএনপি নেতা আফজাল ও তার দলীয় নেতাকর্মীরা  ইউপি সদস্য শাহাবুদ্দীন ও তার পরিবারের ও মামলা সাক্ষীদের খুন জখমের হুমকি দিয়ে আসছিল। এতে কাজ না হওয়ায় ঘটনার দিন আগামী ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী মির্জাপুর গ্রামের শাহাবুদ্দীন সানার বিশেষ কাজে ঢাকায় থাকার সুযোগে প্রতিপক্ষ মির্জাপুর গ্রামের আতিয়ার রহমান সানার পুত্র সাবেক ইউপি সদস্য সাতক্ষীরার আলোচিত বিএনপি নেতা, আমান হত্যা মামলার আসামি আনুলিয়া ইউনিয়ন বিএনপি সহ-সভাপতি আফজাল সানা নেতৃত্বে ভাই নাসির উদ্দিন সানা, আশরাফ উদ্দিন এর পুত্র রাছেল সানা, মৃত আমিরুল সানার পুত্র ফারুক হোসেন, আফজাল সানার পুত্র রিপন সানা, মতিয়ার সানার পুত্র রফিকুল ইসলাম, জিনারুল ইসলাম, কামরুল ইসলাম, মৃত আজিজ সানার পুত্র শহিদুল ইসলাম সহ  বিএনপির নেতা কর্মীরা তার বাড়ীতে সন্ত্রাসী হামলা করে ব্যপক ভাংচুর করতে থাকে এতে বাধা দেওয়ায় মিজানুর রহমানের পুত্র মোজাহিদুর রহমান, সালাম সানার পুত্র ইমরান হোসেন ও আলাউদ্দীনের স্ত্রী ফতেমা খাতুন ডাঃ মোসলেমকে পিটিয়ে জখম করে। হামলাকারীরা বলে শালা বাড়িতে না থাকায় জীবনে বেঁচে গেছে এরপরেও আমাদের হাত থেকে বাচাঁতে পারবেনা ও তার সাথে যারা সঙ্গ দেবে তাদেরও অবস্থা অত্যান্ত ভয়ঙ্কর হবে বলে হুমকি দিতে দিতে ঘটনাস্থল ত্যাগ করার সময় ইউপি সদস্য শাহাবুদ্দীনের চাচাঁতো ভাই ডাক্তার মোসলেম উদ্দিনের মুদির ও ঔষদের দোকানে ঢুকে মালামাল লুটপাট করাসহ ভাংচুর করে। এতে বাধা দেওয়ায় ডাক্তার মোসলেমকে আহত করে। আহতদের আহতদের মধ্যে মোজাহিদুর রহমান, ইমরান হোসেনের অবস্থা আশাংকা জনক হওয়ায় খুলনা মেডিকেল কলেজ  হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অপর দুইজন ডাঃ মোসলেম উদ্দীন ও ফতেমা খাতুুনকে স্থানীয় ডাক্তারের নিকট চিকিৎসাধীন রাখা হয়েছে। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত থানায় অভিযোগ দায়েরের প্রস্তুতি চলছিল। হামলাকারীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করে গ্রেফতারের জোর দাবী জানিয়ে জেলা পুলিশ সুপারের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করা হয়েছে।