মাগুরায় র‌্যাবের হাতে গ্রেপ্তার হওয়া, মকবুলের প্রতারণার কাহিনী প্রকাশ

মাগুরায় র‌্যাবের হাতে গ্রেপ্তার হওয়া, মকবুলের প্রতারণার কাহিনী প্রকাশ

এম এ অয়ন মাগুরা প্রতিনিধি॥মাগুরায় জাল পিএইচডি ডিগ্রিধারী ডাঃ মকবুল হোসেন জীবন মানবিক শাখায় এইচ এস সি পাশ করে মাগুরা ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড  টেকনোলজি কলেজ ও অক্সফোর্ড নার্সিং ইনস্টিটিউটের প্রফেসর ও ডাক্তার পরিচয় দিয়ে ১ যুগ ধরে চাকুরী করিয়া আসছেন। তার বিরুদ্ধে প্রতারনা, ধাপ্পাবাজি, বিভিন্ন জাল সার্টিফিকেট, সনদ তৈরিসহ নানা অপকর্মের অভিযোগ রয়েছে। সে মাগুরা সদর উপজেলার নিশ্চিন্তপুর গ্রামের আব্দুল সাত্তারের ছেলে। মাগুরা এজি একাডেমি হতে এসএসসি পাশ পরে মাগুরা আদর্শ ডিগ্রি কলেজ থেকে মানবিক শাখায় এইচএসসি পাশ করে যশোর নড়াইল, ঝিনাইদাহ, মাগুরা, ফরিদপুর অঞ্চলে প্রতারনা করে এমবিবিএস, এমডি, এফআরসিএস ও পিএইচডি অর্থাৎ চিকিৎসাশাস্ত্রের সর্বোচ্চ ডিগ্রী গুলো ব্যবহার করে ডাক্তারী করার অভিযোগ রয়েছে। গত ৪ঠা সেপ্টেম্বর শুক্রবার জুম্মার নামাজের সময় ফরিদপুরের ল্যাব এশিয়া ডায়াগনিষ্ট সেন্টার থেকে র‌্যাবের  হাতে আটক হয়। ল্যাব এশিয়ার নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ব্যাক্তি জানান ডা. মকবুল হোসেন জীবন দীর্ঘদিন ধরে আমাদের এখানে পিএইচডি ডিগ্রি  আমেরিকা নিউরোমেডিসিন ও মেডিসিন কনসালটেন্ট হিসাবে রোগী দেখে আসছেন। আমাদের এখানে উনার কাগজপত্র দেখে প্রাকটিস করার অনুমতি নিয়ে রোগী দেখছেন কিন্ত জানিনা উনি ভুয়া ডাক্তার কিনা? তবে প্রতি শুক্রবার স্যার তো ঢাকা  বিমানে যশোর নেমে প্রাইভেট কারে করে ফরিদপুর ল্যাবে আসেন। রোগীদের মধ্যে আস্থা অর্জনের জন্য মকবুল হোসেন প্রতি সপ্তাহের শুক্রবারে মাগুরা থেকে নিজস্ব মোটরসাইকেলযোগে মধুখালী গিয়ে সেখান থেকে একটি মাসিক ভাড়াকৃত প্রাইভেটকার যোগে ফরিদপুরে ল্যাব এশিয়াতে নামেন। এদিকে গোপনে র‌্যাব ৮ এর একটি টিম  শুক্রবার মধুখালি বাজার হতে ডা মকবুলের গতিবিধি লক্ষ্য করে  প্রাইভেট কারের পিছু নেয়। পরে বেলা দেড়টার দিকে র‌্যাবের একটি দল ল্যাবএশিয়া ডায়াগনোস্টিকে এসে ডা মকবুল হোসেন জীবনকে খোঁজ করেন। উনি তখন প্যারালাইসিস রোগী দেখছিলেন। মাগুরার পারলা গ্রামের মীর হাশেম আলী জানান, গত বছর ২০১৮ সালে মধুখালি র‌্যাবে অভিযান চালানোর সময় ডায়াগনিষ্টক সেন্টারের পিছনের দরজা দিয়ে ডা. মকবুল পালিয়ে গিয়েছিলেন। 


ডাঃ মকবুল হোসেন জীবন মাগুরায় বঙ্গবন্ধু স্মৃতি সংসদ ও‌ বঙ্গবন্ধু ছাত্র ফেডারেশন নামে নামসর্বস্ব দুটি সংগঠন গঠন‌ করে বঙ্গবন্ধুর নামকে নিজ ব্যক্তি স্বার্থে ব্যবহার করে বঙ্গবন্ধুর নাম কলুষিত করছেন। ছাত্রলীগের একজন সদস্য জানান এই দুটি সংগঠন অনিবন্ধিত এবং বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কোন অনুমোদিত সংগঠন নয়। তার নিজ প্রতিষ্ঠানে অক্সফোর্ড নার্সিং ইনস্টিটিউটের ছাত্রছাত্রীদের নিয়ন্ত্রণ করার উদ্দেশ্যে নিজস্ব আঙ্গিকে এই সংগঠনগুলো তিনি তৈরি করেন, যদিও আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় আসার আগে‌ তিনি বিএনপি'র একজন কট্টর সমর্থক ছিলেন বলে জানা গেছে। 


 মকবুল হোসেন মূলত ইন্টারনেট থেকে সার্টিফিকেট ডাউনলোড করে সেটা হুবহু প্রিন্ট করে মানুষকে দেখিয়ে থাকেন, ঘনিষ্ঠ সূত্রে জানা যায় এরকম সনদ তিনি একাধিক মানুষের কাছে বিক্রি করে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন। এই চক্রটি এখন বাংলাদেশের বিভিন্ন অঞ্চলে বিশেষজ্ঞ ডাক্তার হিসেবে কাজ করছে।


 যশোর, ঝিনাইদাহ, মাগুরা ও ফরিদপুর অঞ্চলে বাহারী বাহারী ভুয়া ডিগ্রি কখনো মেডিসিন, কখনো নিউরো ,গ্যাষ্ট্রো ও বক্ষব্যাধী বিশেষজ্ঞ হিসাবে মানুষের চোখ ফাঁকি দিয়ে প্রতারনা করে রোগী দেখে আসছিলেন। এ ছাড়া সে মাগুরা শান্তি ক্লিনিক প্রাইভেট হাসপাতালে সপ্তাহে একদিন রোগী দেখতে শহরের ভায়না মোড় থেকে প্রাইভেট ভাড়া করে অভিনব কায়দায় শান্তি ক্লিনিকে নামতেন বলে প্রচার করতেন স্যার ঢাকা থেকে এলেন । রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত এই প্রতারক মকবুল ফরিদপুর জেল হাজতে আটক রয়েছেন।

নবীনগরে এতিমের জায়গা দখল ও মিথ্যা চাঁদাবাজি মামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন

 নবীনগরে  এতিমের জায়গা দখল ও  মিথ্যা চাঁদাবাজি মামলার প্রতিবাদে  মানববন্ধন




এস.এম অলিউল্লাহ, ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা প্রতিনিধিঃব্রাহ্মণবাড়িয়া নবীনগর থানাধীন  রতনপুর ইউনিয়ন এর বাজেবিশারা গ্রামের  বিত্তশালী মুক্তিযোদ্ধা মৃত ফজলুল রহমানের  পরিবার কর্তৃক প্রতিবেশী এতিম মাহবুবের ৮ শতাংশ  ডোবা আকার ভূমি জবরদখল ও সেই জায়গার বিষয়টি সুষ্ঠু সমাধানের লক্ষ্যে গ্রামীণ শালিস করায় শালিসীদের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজির মামলা করার প্রতিবাদে  আজ  বাজেবিশারা গ্রামবাসী  মানববন্ধন করেন।


তথ্য সূত্রে জানা যায়, বাজেবিশারা গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা মৃত ফজলুল রহমানের এক পুত্র অস্ট্রেলিয়া ও আরেক পুত্র আমেরিকা প্রবাসী হওয়া সত্বেও তাদের প্রতিবশী এতিম মাহবুবের ৮ শতাংশ জায়গায় 

 জোর করে  ড্রেজার দিয়ে বালু ভরাট করতে গেলে সাধারণ গ্রামবাসী বিষয়টি ন্যাক্কার জনক মনে করেন।এই নেক্কার জনক বিষয়টি  সুষ্ঠু সমাধানের জন্য পরপর ৩টি  গ্রামীণ শালিসি বৈঠক করে এতিম মাহবুবের জায়গা তাকে ফেরত দিতে বলায় মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের হাসিনা বেগম গ্রামীণ শালিসকে অমান্য করে নবীনগর  থানায় অভিযোগ করলে এতিম মাহবুবও থানায় আরেকটি অভিযোগ করেন। তাদের পাল্টাপাল্টি অভিযোগের বিষয়টি গ্রামে অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনার সৃষ্টি হবে বলে মনে করে উপজেলা পর্যায়ের নেতৃবৃন্দের  উপস্থিতিতে বিগত ১৮/০৮/২০ ইং তারিখে শালিসি বৈঠক বসেন।উক্ত শালিসি বৈঠকে মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের পক্ষের লোকজন তাদের ভরাট করা জায়গার মালিকানার কোন কাগজপত্র না দেখাতে পারায় কাগজপত্র দেখানোর জন্য  কৌশলে পরবর্তী  তারিখ  নিয়ে শালিস থেকে চলে আসেন। পরবর্তীতে জানা যায়,শালিসি বৈঠকের ধার্য্য তারিখের আগেই তারা  শালিসে উপস্থিত থাকা গন্যমান্য  ব্যক্তিবর্গের নামে একটি মিথ্যা চাঁদাবাজি মামলা দায়ের করেন। এই খবর শুনার পর এলাকায় গ্রেফতার আতংকে জনমনে অস্থিরতা বিরাজ করছে এবং মুক্তিযোদ্ধা পরিবার হয়ে কি করে মিথ্যা মামলা দায়ের করল জনমনে নানান প্রশ্ন নাড়া দিয়ে উঠেন।তারই ভিত্তিতে গ্রামবাসী একত্রিত হয়ে আজ বিকালে জবরদখলকৃত জায়গায় সামনে জবরদখলকৃত ভূমি ফেরত ও সাধারণ মানুষদের মিথ্যা চাঁদাবাজি মামলা দিয়ে হয়রানি করার প্রতিবাদে মানববন্ধন করেন।

১৮/০৮ তারিখের মিটিং উপস্থিত থাকা নবীনগর উপজেলার সাবেক  মুক্তিযোদ্ধার ডেপুটি কমান্ডার সামছুল আলম সরকার বলেন,আমি জায়গা সংক্রান্ত বিষয়ে সুষ্ঠু সমাধানের জন্য উভয় পক্ষের শালিসি বৈঠক উপস্থিত ছিলাম চাঁদাবাজির বিষয়ে কোন আলোচনা হয় নাই,বৈঠকে ৮ শতাংশ জায়গার উপর উভয়ের দাবি থাকায় স্ব-স্ব প্রমাণাধি কাগজপত্র দেখানোর বিষয়ে কথা হলে মুক্তিযোদ্ধার পরিবারের পক্ষ থেকে ৪ শতাংশ জায়গার কাগজ দেখিয়েছে আর বাকী ৪ শতাংশ জায়গার কাগজ দেখানোর কথা বলে পরবর্তী তারিখ নিয়েছে।তিনি হত বিম্ব কন্ঠে আরো বলেন,কি বলেন এই বিষয়টায় চাঁদাবাজি মামলা হয়েছে! 


এই সম্পর্কে মানববন্ধনে উপস্থিত থাকা আব্দুর রউফ বলেন,গ্রামে যেন বিশৃঙ্খলা না হয় সর্ব সম্মতিক্রমে আমরা পরপর তিনটি বৈঠক করেছি কিন্তু মুক্তিযোদ্ধার পরিবারের পক্ষ থেকে গ্রামীণ শালিস অমান্য করেন এখন শুনতেছি শালিসে উপস্থিত কারো কারো নামে মিথ্যা চাঁদাবাজি মামলা দিয়েছে, আমরা তার সুষ্ঠু সমাধান চাই।


মানববন্ধনে উপস্থিত থাকা মিথ্যা চাঁদাবাজি মামলার আসামি নূরউজ্জামানের মা আরজা বেগম বলেন, আমার ছেলে ইলেকট্রিকাল কাজ করে নবীনগরে বউ পোলাপাইন লইয়া থাকে আমার ছেলেরে যারা মিথ্যা মামলায় ফাঁসায়ছে আমি তারার বিচার চাই। 

এই সময় মানববন্ধনে উপস্থিত থাকা সবাই একসুরে বলেন, আমরা এতিমের সম্পদ ফিরিয়ে দিতে ন্যায় কথা বলায় আমাদের  হয়রানি করতেছে আমরা তার ন্যায় বিচার চাই।


নতুনধারা ঢাকা মহানগর উত্তররে আহবায়ক কমলা বসু

নতুনধারা ঢাকা মহানগর উত্তররে আহবায়ক কমলা বসু




প্রেস বিজ্ঞপ্তিঃ নতুনধারা বাংলাদশে এনডবিি ঢাকা মহানগর উত্তররে আহবায়ক কমটিি অনুমোদন দয়িছেনে চয়োরম্যান মোমনি মহেদেী, সনিয়ির ভাইস চয়োরম্যান শান্তা ফারজানা এবং মহাসচবি নপিুন মস্ত্রিী। কমটিরি আহবায়ক কমলা বসু, যুগ্ম আহবায়ক কামাল মাহমুদ, চন্দন সনেগুপ্ত, লটিন দ্রং, সদস্য সচবি ওয়াজদে রানা, সদস্য সমরিণ সনেগুপ্ত, সালহো বগেম নীলা এবং চৌধুরী সালাম আবু কাওসার।


নতুনধারা বাংলাদশে এনডবিরি জাতীয় সম্মলিন নভম্বেরে অনুষ্ঠতি হব।ে সপ্তম এই সম্মলিনকে কন্দ্রে করে সকল শাখার র্কাযকরি কমটিি বলিুপ্ত করে আহবায়ক কমটিি গঠনরে সূত্রতায় ‘র-িঅরাগানাইজংি টমি’-এর তত্বাবধায়নে ৬ সপ্টেম্বের সকাল ১০ টায় আনুষ্ঠানকিভাবে দশেরে ৪৪ টি জলো ও ১০৪ টি উপজলোর র্কাযকরি কমটিি বলিুপ্ত করে আহবায়ক কমটিি অনুমোদনরে র্কাযক্রম উদ্বোধন করনে ধারার প্রসেডিয়িাম মম্বোর বীর মুক্তযিোদ্ধা ফজলুল হক। এই র্কমসূচী চলাকালে বায়ান্নকে প্ররেণা-একাত্তরকে চতেনা এবং সকল বীররে প্রতি যথাযথ সম্মান প্রর্দশনরে মধ্য দয়িে দারদ্রি-র্দুনীত-িসন্ত্রাস-খুন-গুমমুক্ত বাংলাদশে গড়ার লক্ষ্যে আগ্রহী যে কউে চাইলইে ০১৯৭২-৭৪০০১৫ নাম-ঠকিানা-জাতীয় পরচিয়পত্র নম্বর লখিে এসএসএস করলইে প্রাথমকি সদস্য করে রপ্লিাই ম্যাসজে এবং কল করা হব।

খেলাধুলায় বাড়ে বল মাদক ছেড়ে খেলতে চল

খেলাধুলায় বাড়ে বল   মাদক ছেড়ে খেলতে চল




মোঃ ইকরামুল করিম সৈকত, ঝিকরগাছা প্রতিনিধিঃ

খেলাধুলায় বাড়ে বল 

মাদক ছেড়ে খেলতে চল" 

এই শ্লোগানকে সামনে রেখে আজ রবিবার বিকাল ৫.০০ ঘটিকার সময় স্থানীয় লাউজানী এন এম মাধ্যমিক বিদ্যালয় মাঠে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ঝিকরগাছা ব্লাড ফাউন্ডেশন ও ঝিকরগাছা ব্লাড ব্যাংকের মধ্যে প্রীতি ফুটবল ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়।


খেলায় ঝিকরগাছা ব্লাড ফাউন্ডেশন ৫-১ গোলের বিশাল ব্যবধানে জয়লাভ করে। বিজয়ী দলের পক্ষে সোয়েব ২টি বাদশা, আরিফ ও রাহুল একটি গোল করেন। পরাজিত দলের পক্ষে বিলাস ১টি গোল করেন।

প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ

প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ



খবর বিজ্ঞাপ্তিঃ-  

পটিয়া পৌরসভার বৈলতলী রোডে অনুকূল ষ্টোরের জনৈক উত্তম কুমার দাশকে চাদাঁ না পেয়ে কুপিয়ে জখম সংক্রান্ত দৈনিক আজাদী, দৈনিক পূর্বকোণ, দৈনিক চট্টগ্রাম মঞ্চ ও বিভিন্ন অনলাইন সহ আমি কলিমুর রহমান ও সাবেক কাঞ্চনাবাদ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো: জাফরকে জড়িয়ে যে সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে তা সম্পূন্ন মিথ্যা, ভিত্তিহীন উদ্দেশ্য প্রনোদিত বিধায় আমরা এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

প্রকৃত পক্ষে বাহুলী মৌজা আরএস খতিয়ান নং- ৯২২, আরএস দাগ নং- ১৪৫/১৪৬, বিএস খতিয়ান নং-৯২৭ নামজারী খতিয়ান নং- ১৭৭৪, বিএস দাগ নং-১৯৭ আন্দরে ২০৬ শতাংশ এবং মো: জাফর বিএস ১৪৫/১৪৬, বিএস খতিয়ান নং- ৯২৭, নামজারী খতিয়ান নং- ১৩১৮, বিএস দাগ নং- ১৯৭ ভূমির পরিমাণ ০১ (গন্ডা) এক কড়া জায়গা নিয়ে প্রতিপক্ষ উত্তম কুমার দাশ গং অবৈধ জবর দখলের চেষ্টা করলে কলিমুর রহমান অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে গত ২৪ আগস্ট ফৌজদারী কার্যবিধি আইনে ১৪৫ ধারা বিধান মতে মিচ মামলা নং-৭১৯/২০ইং দায়ের করে। আদালত উক্ত জায়গায় শান্তি শৃঙ্খলা বজায় রাখার  জন্য পটিয়া থানার ওসি’কে আদেশ প্রদান করে। এছাড়াও একই তারিখে সাবেক চেয়ারম্যান মো: জাফর গং উক্ত বিরোধীয় জায়গা নিয়ে অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট আদালত চট্টগ্রাম মিচ মামলা নং-৭২০/২০ইং ১৪৫ ধারা মতে মামলা দায়ের করিলে বিজ্ঞ আদালত নালিশী ভূমিতে উভয় পক্ষকে শান্তি শৃঙ্খলা বজায় রাখার জন্য পটিয়া থানার ওসি’কে  স্মারক নং-১৪০৮  মূলে নির্দেশ প্রদান করেন। তাছাড়াও আমাদের প্রতিপক্ষ উত্তম কুমার দাশ ১৯/০৭/২০ইং অতিরিক্ত  জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে ১৪৫ ধারা মতে আরেকটি মিচ মামলা নং- ৫১৮ দায়ের করে। এর পরিপ্রেক্ষিতে থানা কর্তৃক দায়িত্ব প্রাপ্ত সংশ্লিষ্ট আইওগণ শান্তি শৃঙ্খলা বজায় রাখার জন্য সকল পক্ষকে অবহিত করে নোটিশ জারী করেন। এই তিনটি আদালতে মামলা চলমান থাকা অবস্থায় উত্তম কুমার দাশ কুচক্রী মহলের প্ররোচনায় বহিরাগত সন্ত্রাসী নিয়ে আদালতের আদেশ অমান্য করে জোর পূর্বক জায়গা দখলের পায়তারা চালিয়ে যাচ্ছে। তিনি প্রকৃত ঘটনাকে আড়াল করতে মিথ্যা সংবাদ প্রকাশ করে ভিন্নখাতে ঘটনা প্রবাহিত করার চেষ্টা করছে। আমরা উক্ত সংবাদের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। প্রতিবাদকারী   মো: কলিমুর রহমান ও সাবেক চেয়ারম্যান মো: জাফর, ০১৭১৭-১৪৭২৮৩ 


চৌগাছা উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান দেবাশীষ মিশ্র জয়ের সুস্থতা কামনা

চৌগাছা উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান দেবাশীষ মিশ্র জয়ের সুস্থতা কামনা



চৌগাছা উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান দেবাশীষ মিশ্র জয়ের সুস্থতা কামনা

প্রেস বিজ্ঞপ্তিঃ  চৌগাছা উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান দেবাশীষ মিশ্র জয়ের সুস্থতা কামনা করেছেন ২ নং পাশাপোল ইউনিয়ন ছাত্রলীগ ও আওয়ামী যুবলীগের পক্ষ থেকে প্রভাষক মোঃ সবুজ হোসেন।

প্রভাষক মোঃ সবুজ হোসেন এক বিবৃতিতে বলেন 


যশোরের চৌগাছা উপজেলা পরিষদের বার বার নির্বাচিত ভাইস চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের আহবায়ক বাবু দেবাশীষ মিশ্র জয় দাদা জ্বর  সংক্রান্ত কারণে অসুস্থ হয়ে নিজ বাড়ীতে চিকিৎসা নিচ্ছেন,, প্রিয় দাদার  দ্রুত সুস্থতা কামনা করছি।

বড়দলে আঁখির উপর হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন

 বড়দলে আঁখির উপর হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন

  




আহসান  উল্লাহ  বাবলু, উপজেলা প্রতিনিধি ঃ মাগুরা জেলার মোহাম্মাদপুর উপজেলার কলেজ ছাত্রী আকলিমা খাতুন আঁখিকে আগুনে পুড়িয়ে হত্যার প্রতিবাদে আশাশুনি উপজেলার বগৎড়দলে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। রবিবার বিকালে বড়দল ইউনিয়নের বুড়িয়া গ্রামে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। 

বুড়িয়া পল্লী সমাজ মহিলা সমবায় সমিতি লিঃ এর আয়োজনে মানববন্ধন চলাকালে বক্তব্য রাখেন, শিক্ষক ভবেশ চন্দ্র মন্ডল, হরিশ চন্দ্র, বুড়িয়া পল্লী সমাজ মহিলা সমবায় সমিতি লিঃ এর সভাপতি বিভা রানী, সেক্রেটারী জয়ন্তী রানী, কোষাধ্যক্ষ সুজতা রানী প্রমুখ। মানববন্ধন চলাকালে আঁখির উপর সকল হামলাকারীদের দ্রুত গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী জানিয়ে বক্তাগণ আলোচনা রাখেন।

আশাশুনি সদর ইউনিয়নে বানভাসি মানুষের মাঝে ত্রাণ বিতরণ

 আশাশুনি সদর ইউনিয়নে বানভাসি মানুষের মাঝে ত্রাণ বিতরণ



আহসান উল্লাহ বাবলু উপজেলা  প্রতিনিধি :  


আশাশুনির সদর ইউনিয়নের বানভাসি মানুষের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করা হয়েছে। রবিবার সকালে সদর ইউনিয়ন পরিষদের ৭ নং ওয়ার্ডের বানভাসি ১০৬ পরিবারের মাঝে জি আর এর ১০ কেজি করে চাল বিতরণ করেন  ইউপি চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক স ম সেলিম রেজা মিলন। ত্রাণ বিতরণ কালে ইউপি চেয়ারম্যান সেলিম রেজা মিলন বলেন,সুপার সাইক্লোন আম্পানে ওয়াপদা বেড়িবাঁধ ভেঙে যাওয়ায়  এবং পরবর্তীতে অতি বর্ষণে জোয়ারের পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় পার্শ্ববর্তী ভাঙ্গন কবলিত শ্রীউলা ইউনিয়ন থেকে পানি এসে আশাশুনি সদর ইউনিয়নের অধিকাংশ গ্রাম প্লাবিত হয়। সদর ইউনিয়নের বানভাসি প্রত্যেকটি পরিবার নিকট সরকারি বরাদ্দকৃত ত্রাণ থেকে শুরু করে যে কোন সুযোগ সুবিধা পৌছে দেয়া হবে। ত্রাণ নিয়ে কোন প্রকার অনিয়ম হতে দেব না। আমি সবসময় আপনাদের পাশে আছি।এ সময় উপস্থিত ছিলেন ইউপি সদস্য শাহিনুর ইসলাম, ইন্দ্রানী মণ্ডল প্রমুখ।

হবিগঞ্জে বাসের সাথে মোটরসাইকেল মুখোমুখি সংঘর্ষে ও করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু-২

 হবিগঞ্জে বাসের সাথে মোটরসাইকেল মুখোমুখি সংঘর্ষে  ও করোনায় আক্রান্ত হয়ে  মৃত্যু-২


.



লিটন পাঠান, হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি 


হবিগঞ্জ শায়েস্তাগঞ্জ সড়কের ধুলিয়া খালে বাস ও মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষে মোশাহিদ মিয়া নামে (৩৬) এক মোটরসাইকেল আরোহী নিহত হয়েছেন।

আজ রোববার( ৬ সেপ্টেম্বর ) বেলা সাড়ে ১২টার দিকে ধুলিয়াখাল তেমুনিয়া এলাকায় এ দূর্ঘটনাটি ঘটে নিহত। মোশাহিদ মিয়া সদর উপজেলার সৈয়দপুর গ্রামের ফারুক মিয়ার ছেলে। সে হবিগঞ্জ চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের নৈশ প্রহরি হিসেবে কর্মরত ছিল। স্থানীয় সূত্রে জানা যায়- বেলা সাড়ে ১১টার দিকে হবিগঞ্জ থেকে শায়েস্তাগঞ্জের উদ্দেশ্যে মোটরসাইকল যোগে রওনা দেন মোশাহিদ মিয়া। 


পথিমধ্যে ধুলিয়াখাল এলাকায় পৌঁছলে বিপরীত দিক থেকে আসা হবিগঞ্জ-সিলেট বিরতীহিনের একটি যাত্রীবাহি বাসের সাথে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়,এতে ঘটনাস্থলেই মোশাহিদ মিয়া নিহত হন

বিষয়টি নিশ্চিত করে হবিগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মাসুক আলী বলেন- খবর পেয়ে পুলিশ নিয়ে ঘটনরাস্থলে পৌঁছে নিহতের লাশ উদ্ধার করে হবিগঞ্জ মর্গে প্রেরণ করেছে।


আইনজীবীর মৃত্যু। হবিগঞ্জে করোনায় আক্রান্ত হয়ে সিনিয়র আইনজীবী এ্যাডভোকেট মো. নজরুল ইসলাম (৫৭) মৃত্যুবরণ করেছেন রোববার(৬সেপ্টেম্বর) সকাল সাড়ে ৯টায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের আইসিইউতে চিকিৎসাধীন থাকা অবস্থায় তিনি মারা যান মৃতের পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, প্রায় এক সপ্তাহ আগে এ্যাডভোকেট মোঃ নজরুল ইসলামের করোনা পজিটিভ হয়।

এরপর তাকে ঢাকার মুগদা হাসপাতালে ভর্তি করা হয় অবস্থা আশংকাজনক। 


হওয়ায় পরে তাকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের আইসিইউতে স্থানান্তর করা হয়। সেখানেই চিকিৎসাধীন অবস্থায় রোববার সকালে তিনি মারা যান। এদিকে সিনিয়র আইনজীবী মোঃ নজরুল ইসলামের মৃত্যুতে হবিগঞ্জে শোকের ছায়া নেমে আসে। জেলা আইনজীবী সমিতির অত্যন্ত জনপ্রিয় ব্যক্তিত্ব ছিলেন তিনি। হবিগঞ্জ আইনজীবী সমিতিতে বিভিন্ন সময় নানা দায়িত্ব পালন করেছেন তিনি।


হবিগঞ্জ আইনজীবি সমিতির সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট রুহুল হাসান শরীফ জানান, মোঃ নজরুল ইসলামের মৃত্যুতে রোববার কোর্টের স্বাভাবিক কার্যক্রম স্থগিত ঘোষণা করা হয়েছে। সন্ধ্যা ৭টায় জজ কোর্ট প্রাঙ্গনে মৃতের জানাযার নামাজ অনুষ্ঠিত হবে। পরে ওই আইনজীবীর নিজ বাড়ি নবীগঞ্জ উপজেলার ইনাতগঞ্জে করোনা বিধি অনুযায়ী মৃতের মরদেহ দাফন করা হবে বলেও জানান তিনি।

মডেল ফাঁসিয়াখালী গড়ার প্রত্যয় নিয়ে সমাজের সকল শ্রেণীর মানুষ নিয়ে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল

মডেল ফাঁসিয়াখালী গড়ার প্রত্যয় নিয়ে সমাজের সকল শ্রেণীর মানুষ নিয়ে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল

মীরকাশেম চকরিয়াঃকক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলারফাঁসিয়াখালী ইউনিয়নে “আইনসৃংখলা, কবরস্থান/মসজিদ ব্যবস্থাপনা, করোনা মহামারী প্রতিরোধ এবং দেশ ও জনগণের কল্যাণে করনীয় বিষয়ক আলোচনা সভা”

ফাঁসিয়াখালী ইউনিয়ন পরিষদ চত্ত্বরে চকরিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও ফাঁসিয়াখালী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব গিয়াস উদ্দিন চৌধুরী’র সভাপতিত্বে ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ নুরুল আবছার এর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত হয়।

উক্ত সভায় প্রধান আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন এই ইউনিয়নের কৃতি সন্তান দেশ বরণ্য আলেম আল-বলাগাল মু’মীন মাদ্রাসার প্রধান পরিচালক আলহাজ্ব মৌলানা মুফতি এনামুল হক। বিশেষ আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ফাঁসিয়াখালী আশরাফুল উলুম মাদ্রাসার প্রধান পরিচালক আলহাজ্ব মৌলানা আব্দুল মন্নান সাহেব, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি সাহাব উদ্দিন মে


ম্বার। এতে ফাঁসিয়াখালী ইউনিয়নের আলেম সমাজ, শিক্ষক সমাজ, রাজনৈতিক ব্যাক্তিত্ব ও ইউনিয়নের প্রত্যেকটি মাদ্রাসা, মসজিদ ও কবরস্থান ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক, স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যাক্তি এবং স্থানীয় জনপ্রতিনিধিগণ আলোচনায় অংশ নেন।

প্রধান আলোচকের বক্তব্যে মুফতি এনামুল হক বলেন, দেশের আইনসৃংখলা রক্ষা করার দায়িত্ব আইনসৃংখলা বাহিনীর হলেও সামাজিক ভাবে যদি পিতা মাতা ও সমাজপতিরা এগিয়ে না আসে, তাহলে একক ভাবে আইনসৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনীর দ্বারা রক্ষা করা কঠিন উল্লেখ করে তিনি প্রত্যেক সচেতন নাগরিকদের এগিয়ে এসে প্রশাসন কে সহযোগিতার আহবান করেন।

সভাপতির বক্তব্যে আলহাজ্ব গিয়াস উদ্দিন চৌধুরী বলেন- সমাজে দিন দিন অপরাধ প্রভনতা বেড়ে চলেছে সারাদেশে। তুলনামূলকভাবে ফাঁসিয়াখালীতে এখনো তার প্রভাব পড়েনি উল্লেখ করে তিনি বলেন , আমার এলাকার মুরব্বিগণ এ বিষয়ে সজাগ দৃষ্টি রেখে আসছেন অতীতে, আগামীতেও প্রত্যেকটি খারাপ কাজে বাধা দিয়ে প্রশাসন কে সহযোগিতা করার অনুরোধ করেন। মসজিদ, মাদ্রাসা ও কবরস্থানের সংস্কারের বিষয়ে বিভন্ন জনের দেওয়া পরামর্শ তিনি লিপিবদ্ধ করে রেখেছেন এবং তা পর্যায়ক্রমে বাস্তবায়নের আশ্বাস দেন। প্রত্যেকটি মসজিদ পরিচালনা কমিটির সদস্যদের নামাজ পড়ার প্রতি গুরুত্বারুপ করে তিনি বলেন, মসজিদ পরিচালনা কমিটির সদস্যগন যদি নিজেরাই নামাজ না পড়ে তা হলে, মসজিদের প্রতি তাদের আন্তরিকতা কিভাবে সৃষ্টি হবে? তাই ইউনিয়নের প্রত্যেকটি মসজিদ পরিচালনা কমিটির সদস্যদের নামাজি হওয়ার জন্য অনুরোধ করেন। অন্যথায় তাদের কমিটি থেকে অপসারণ করা হবে বলে হোসিয়ার করে দেন। আগামীতে এধরনের বেশি বেশি আলোচনা সভা করবেন বলেও নিশ্চিত করেন, ফাঁসিয়াখালী ইউনিয়ন থেকে বারেবারে নির্বাচিত জনপ্রিয় চেয়ারম্যান আলহাজ্ব গিয়াস উদ্দিন।

করোনা মহামারী রোধে সামাজিক সচেতনতা বৃদ্ধির গুরুত্বারুপ তুলে ধরে আলোচনা করেন চকরিয়া উপজেলা কাব স্কাউট লিডার অত্র ইউনিয়নের সন্তান মাষ্টার নাছির উদ্দিন।

আলোচনা শেষে এই এলাকার সকলের মুরব্বি আলহাজ্ব মৌলানা ক্বারী আহমদ হোসাইন সাহেব দোয়া পরিচালনা করেন।

উপস্থিত প্রায় পাঁচ শতাধিক লোকজন কে চেয়ারম্যান সাহেবের বাড়িতে চাষকরা বিন্নি চালের সুস্বাদু ভাত মেজবানি মাংস ও আখের গুড় দিয়ে পরিবেষণ করা হয়। অনুষ্ঠানে আগত সকলেই পেঠ ভরে খেয়ে খুশিমনে বাড়ি ফিরেন বলে জানান অনুষ্ঠানে আগত স্থানীয় মুরব্বি আলহাজ্ব মাষ্টার আবুল কাসেম ফারুক, তিনি আরও বলেন, চেয়ারম্যানের ব্যতিক্রমধর্মী এই আয়োজন সকলকে মুগ্ধ করেন।

নবাবগঞ্জে বজ্রপাতে ১ জন নিহত

নবাবগঞ্জে বজ্রপাতে  ১ জন নিহত

মামুনুর রশিদ,দিনাজপুর প্রতিনিধিঃ  - দিনাজপুরের নবাবগঞ্জ উপজেলার পল্লীতে রবিবার বিকালে বজ্রপাতে আব্দুল  হালিম (৬২) নামে ১জন নিহত হয়েছেন। সে উপজেলার দাউদপুর ইউনিয়নের দেওগা গ্রামের মৃত খলিলুল্লাহর ছেলে। নবাবগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ অশোক কুমার চৌহান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। এলাকাবাসী জানায় প্রতিদিনের ন্যায় আব্দুল হালিম রবিবার বিকেলে মাঠে গরু চড়াতে গেলে হালকা বৃষ্টি সহ বজ্রপাত হয়। এসময় গরু নিয়ে বাড়ি ফেরার পথে দেওগা ঈদগা মাঠ এর নিকট পৌঁছলে আব্দুল হালিমের উপর বজ্রপাত হয়।  পরে স্বজনরা নবাবগঞ্জ স্বাস্থ্য  কমপ্লেক্সে নিলে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করেন। নিহতের লাশ তার স্বজনদের হস্তান্তর করা হয়েছে।

বিরলে স্মারকলিপি প্রদান ও হাইজিং কীট বিতরণ

বিরলে স্মারকলিপি প্রদান ও হাইজিং কীট বিতরণ


মামুনুর রশিদ,দিনাজপুর প্রতিনিধি॥ করোনা ভাইরাস/ জীবাণু কোভিড-১৯ এর সংক্রমনে সৃষ্ট দারিদ্রয়ান প্রতিরোধে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বরাবরে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের মাধ্যমে উপজেলা জনসংগঠনের নারী-পুরুষ সদস্যগণের পক্ষে উপজেলা ভূমিহীন সমন্বয় পরিষদ স্মারকলিপি প্রদান করেছে।

 বিরল উপজেলা নির্বাহী অফিসারের পক্ষে উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি জাবের মোঃ সোয়াইব স্মারকলিপিটি গ্রহণ করেন। এসময় উপজেলা ভূমিহীন সমন্বয় পরিষদ এর সভাপ্রধান বিবি হাজেরা, সহ-সভাপতি সুজন চন্দ্র রায়, সাধারণ সম্পাদক রাজুকুমার রায়, সদস্য হরিমোহন ভূঞ্জার, রহিমা বেগম, সাহেরা বেগম, মফিজ উদ্দিন, ইউনুস আলী প্রমূখ উপস্থিত থেকে স্মারকলিপিটি প্রদান করেন। পরে কমিউনিটি ডেভেলপমেন্ট এ্যাসোসিয়েশন (সিডিএ) বিরলস্থ আঞ্চলিক কার্যালয়ে ১৮০ টি পরিবারের মাঝে হাইজিং কীট বিতরণ করে।

স্মারকলিপিতে দিনাজপুর ও ঠাকুরগাঁও জেলার ১১ টি উপজেলার ৭৭ টি ইউনিয়নে স্ব-উদ্যোগে গঠিত ৭৩০ টি গ্রামে গ্রামভিত্তিক জনসংগঠন দারিদ্র হ্রাস এবং সম্মলিত শক্তি ও ক্ষমতা বৃদ্ধির জন্য নারী-পুরুষ একতে ্রজনসংগঠন গড়ে তুলেছে বলে জানান। বর্তমানে ৩২ হাজার ৪৭৭ জন নারী ও ৩৩ হাজার জন পুরুষ ভূমিহীন মি,লে ৬৫ হাজার ৪৭৭ জন সদস্য রয়েছে সংগঠনটির। 

আজকে দেশ জাতি ও সারা পৃথিবী একটি ভয়াবহ সংকট অতিক্রম করছে, সেজন্য এই ভয়াবহ মুহুর্তের অবস্থার পর্যালোচনা করে জীবন ও জীবিকায়ন এর বাস্তব ধারণায় ৫ দফা দাবি তুলে ধরেন নেতৃবৃন্দ।

দাবিসমূহ নি¤œরূপঃ

১) ভূমি সংষ্কার, কৃষি-ভূমি সংষ্কার ও ভূমি পুনঃবন্টন জরুরী। কৃষি-ভূমি নির্ভর ভূমিহীন পরিবারকে কমপক্ষে ২ একর খাস জমি প্রদান করতে হবে। তৎসহ ভূমিতে দীর্ঘস্থায়ী কর্মসংস্থানের, শিক্ষা ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে যাবতীয় রাষ্ট্রীয় নীতি ও সুষ্পষ্ট ম্যানুয়েল এর মাধ্যমে সুবিধা প্রদান করতে হবে। যা কমপক্ষে ১৩% দারিদ্র কমাতে সহায়ক ভূমিকা রাখতে পারে।

২) ভূমি প্রশাসন ব্যবস্থার সংষ্কার অত্যাবশ্যক ও দূর্নীতি রোধে কঠোর আইনী ব্যবস্থা প্রবর্তন করতে হবে।

৩) সকল নাগরিকক মৌলিক সেবায় প্রবেশাধিকার নিশ্চিত করার জন্য পৃথক পৃথক গ্যারেন্টি স্কিম বাস্তবায়ন করতে হবে। দায়িত্বশীল কর্মকর্তাদের স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে হবে।

৪) কৃষি-ভূমি ও অন্যান্য অকৃষির সকল আয়ের সূত্র বিবেচনা করে ন্যায্যতার ভিত্তিতে কর ব্যবস্থাপনার সংষ্কার করতে হবে, বৈষম্য নিরসন ও দারিদ্র বিমোচনে অর্থনৈতিক মানবাধিকার সহ ব্যবসায়+মানবাধিকার লংঘন কিংবা দ্বন্দ্ব মনিটরিং ব্যবস্থাপনার জন্য পৃথক প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলতে হবে।

৫) সরকারী খাস জমি ও অর্পিত সম্পত্তির আইন লংঘন করে দূর্নীতি ও দূর্বৃত্তায়ন এর দাপটে প্রকৃত ভূমির ধরন পাল্টিয়ে দূর্নীতিবাজদেরকে প্রদত্ত ভূমির লীজ বাতিল করতে হবে এবং বেওয়ারিশ অর্পিত সম্পত্তিকে অনতিবিলম্বে খাস খতিয়ানভূক্ত করে ভূমিহীন এর মধ্যে দারিদ্র দূরীকরণের জন্য বিতরণ করতে হবে।

দিনাজপুর জেলা আইনজীবী সমিতির নির্বাচনে এ্যাড. মাজহারুল সভাপতি ও এ্যাড. হাজী সাইফুল সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত

 দিনাজপুর জেলা আইনজীবী সমিতির নির্বাচনে এ্যাড. মাজহারুল সভাপতি ও এ্যাড. হাজী সাইফুল সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত


মামুনুর রশিদ,দিনাজপুর প্রতিনিধি ॥ দিনাজপুর জেলা আইনজীবী সমিতির নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী এ্যাড, মাজহারুল ইসলাম সরকার সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে বঙ্গবন্ধু  আওয়ামী আইনজীবী পরিষদ প্যানেলের হাজী মোঃ সাইফুল ইসলাম এ্যাডভোকেট-১ সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছেন। নির্বাচনে ৪ টি প্যানেলের কোনোটি সংখ্যা গরিষ্ঠ পায়নি।

৫ সেপ্টেম্বর শনিবার সকাল ১০ টা থেকে বিকাল ৩ টা পর্যন্ত কোন প্রকার বিরতী ছাড়াই ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। স্বাস্থ্য বিধি মেনে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দিপনার মধ্যে দিয়ে ভোটাররা তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন।

নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী এ্যাড, মাজহারুল ইসলাম সরকার (প্রাপ্ত ভোট-১৮৩) সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন। বঙ্গবন্ধু  আওয়ামী আইনজীবী পরিষদ মনোনিত ও দিনাজপুর জেলা আওয়ামীলীগ সমর্থীত কাজেম সাইফুল প্যানেল থেকে ৩ জন নির্বাচিত হয়েছে । এরা হলেন- সাধারণ সম্পাদক পদে হাজী মোঃ সাইফুল ইসলাম এ্যাডভোকেট-১ (প্রাপ্ত ভোট-১৫৩)  (জেলা আওয়ামীলীগের সদস্য ও দিনাজপুর দায়রা জজ আদালতের অতিরিক্ত পিপি), সহ সাধারণ সম্পাদক পদে এ্যাড অপূর্ব রায় এবং  সদস্য পদে এ্যাড. মাসুদা বেগম।

বঙ্গবন্ধু  আওয়ামী আইনজীবী পরিষদ মনোনিত দাবীদার সাইদুর- সারওয়ার প্যানেল থেকে ৪ জন নির্বাচিত হয়েছেন। এরা হলেন- সহ সভাপতি পদে এ্যাড, মোঃ মজিবর রহমান ও  এ্যাড মোঃ মেহবুব হাসান চৌধুরী লিটন, ও সদস্য পদে এ্যাড,মিজানুর রহমান শাহ্ ও শুভ বিশ্বাস।

বিএনপি সমর্থিত প্যানেল থেকে ৫ জন নির্বাচিত হয়েছেন। এরা হলেন-সহসাধারণ সম্পাদক পদে এ্যাড,মোঃ শাহিনুর রহমান মানিক, কোষাধ্যক্ষ মোঃ সাইফুল ইসলাম-২ শিক্ষা ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক পদে এ্যাড, খুরশিদা পারভীন জলি, সমাজ কল্যাণ ও ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক মোঃ মাইনুল আলম এবং সদস্য পদে দিলারা ইয়াসমিন ইতি নির্বাচিত হয়েছেন। 

প্রগতিশীল আইনজীবী পরিষদ মনোনিত ইউসুফ-ইয়ামিন প্যানেল থেকে ২ জন নির্বাচিত হয়েছে। এরা হলেন- পাঠাগার সম্পাদক পদে এ্যাডঃ মোঃ কামরুল হাসান-১ ও সদস্য পদে এ্যাড, রিটার্ড মুর্মু।

নওগাঁ -৬ উপনির্বাচনে জননেত্রী শেখ হাসিনার হয়ে কাজ করতে চাই, মনোনয়ন প্রত্যাশী নূরে আলম সিদ্দিকী

নওগাঁ -৬ উপনির্বাচনে  জননেত্রী শেখ হাসিনার হয়ে কাজ করতে চাই, মনোনয়ন প্রত্যাশী নূরে আলম সিদ্দিকী



মোঃ ফিরোজ হোসাইন 

রাজশাহী ব্যুরোঃ নওগাঁ-৬ (আত্রাই- রাণীনগর) উপজেলা নিয়ে গঠিত সংসদীয় আসন। গত ২৭ জুলাই এমপি ইসরাফিল আলম মারা যাওয়ায় এ আসনটি শুন্য হয়। আগামী ১৭ অক্টোবর নির্বাচনের দিন ঘোষনা করায় আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশীরা মাঠে দৌড়ঝাঁপ এবং মোটর সাইকেল শোভাযাত্রা শুরু করলে নির্বাচনী হাওয়া বইতে শুরু করেছে। উপনির্বাচনকে সামনে রেখে আওয়ামীলীগ অফিস থেকে ৩৪জন মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন। 

এ উপনির্বাচনে আত্রাই- রানীনগর এলাকায় আলোচনার কেন্দ্রবিন্দু আ”লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী ইঞ্জিনিয়ার নূরে আলম সিদ্দিকী সরদার। তাকেই সর্বস্তরের মানুষ এমপি হিসাবে দেখতে চায়। 

দুই উপজেলার মানুষের প্রত্যাশা অনুসারে জনসংযোগ, উঠান বৈঠক, সমাবেশসহ নানা উপায়ে ভোটারদের কাছে পৌঁছার চেষ্টা করেছেন ইঞ্জিনিয়ার নূরে আলম সিদ্দিকী সরদার।

এক সাক্ষাৎকারে তিনি জানান, আমি তো এলাকার সন্তান, আমি বঙ্গন্ধুর আদর্শের সৈনিক, ছাত্র অবস্থায় থেকে বঙ্গবন্ধুর কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিার আদর্শে বিশ্বাসী। স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলন নির্যাতিত যোদ্ধা। সকলে জানেন বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তান হিসাবে “আমরা মুক্তিযোদ্ধার সন্তান” সংগঠনটি প্রতিষ্ঠা করেছি। এছাড়াও গরীব দুখি মেহনতি মানুষের সেবা করাই আমার প্রধান কাজ।

এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, দলকে সুসংগঠিত করে ও এই অঞ্চলের শান্তি বজায় রাখতে উন্নয়নের ধারাবাহিকতা রক্ষা, এলাকার মানুষের কর্মসংস্থান সৃষ্টি লক্ষ্যে কাজ করে যেতে পারবে বলে মনোনয়ন দেয়া সঠিক সিদ্ধান্ত হবে বলে অনেকের মত। জনপ্রিয়তার বিচারে তিনি উচ্চ শিক্ষত, নেতৃত্বের গুনাবলী রয়েছে বলেও স্থানীয় জন সাধারণের ধারনা। আত্রাই রানীনগর এলাকাটি বরেন্দ্র ভুমি এখানে চাষাবাদের জন্য উপযুক্ত। কিন্ত আমার এলাকার মানুষ অসহায় দরিদ্র উপযুক্ত উপকরণ না থাকায় চাষাবাদে ব্যহত হচ্ছে। আমার ইচ্ছা ঔ খেটে খাওয়া কৃষককে সর্বোচ্চ সুবিধা দিয়ে উন্নত কৃষি ব্যবস্থা করণ। পাশাপাশি এখাকার শিক্ষার প্রসার ঘঠানো যাতে করে যাতে করে দুই উপজেলার মানুষ উচ্চ শিক্ষায় শিখিত হতে পারে। 

মনোনযন পেলে আমি চাই আমার এলাকাকে জননেত্রী শেখ হাসিনার ভিশন “আমার গ্রাম আমার শহর” হিসেবে গড়তে চাই। এলাকার মানুষের জন্য বঙ্গবন্ধু কন্যা, জননেত্রী শেখ হাসিনার হয়ে কাজ করতে চাই। আমি ডিজিটাল কর্মসূচির যথার্থ প্রতিফলন দিতে চাই। পাশাপাশি এলাকার হাজার হাজার বেকার মানুষের কর্মসংস্থান সৃষ্টি করব। উল্লেখ্য, গত ২৭ জুলাই এই আসনের এমপি ইসরাফিল আলম মারা গেলে আসনটি শুন্য হয়ে পরে। ইতিমধ্যে মনোনয়ন পেতে ৩৪ জন মনোনয়ন প্রত্যাশী আওয়ামীলীগের দলীয় মনোনয়ন উত্তোলন করেছেন। নির্বাচন কমিশন থেকে আগামী ১৭ অক্টোবর নির্বাচনের দিন ধার্য করা হয়েছে। এই আসনে ইভিএম-এর মাধ্যমে ভোট গ্রহণ করা হবে৷

সুবর্ণচর উপজেলা ছাত্রলীগে সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী মোজাম্মেল হক অন্তর

 সুবর্ণচর উপজেলা ছাত্রলীগে সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী মোজাম্মেল হক অন্তর




আরিফ হোসেনঃ   নোয়াখালীর সুবর্ণচর উপজেলার চরজুবিলী গ্রামে এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে ১লা জুলাই ১৯৯৬ সালে জন্মগ্রহণ করেন মোজাম্মেল হক অন্তর।


পরিবারের সর্বকনিষ্ঠ সন্তান অন্তর ছোটবেলা থেকেই ছিলেন,দুরন্ত, দুর্বার ও ডানপিটে স্বভাবের। প্রাইমারি স্কুলে মেধা তালিকায় ভিত্তি অর্জন করে নিজেকে প্রকাশ করেন মেধাবী শিক্ষার্থী রুপে। বয়সের সাথে সাথে রাজনৈতিক বিভিন্ন সামাজিক কার্যকলাপ ফুটে উঠে মোজাম্মেল হক অন্তরের কর্মকান্ডে।


৭ম শ্রেণীতে পড়াবস্থায় পারিবারিকভাবে লালিত বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে ধারণ করে রাজনীতিতে জড়িয়ে পড়েন। ৯ম শ্রেণীতে পড়াবস্থায় শহীদ জয়নাল আবেদীন সরকারি মডেল উচ্চ বিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হোন বিপুল ভোটে।


স্কুল শাখা ছাত্রলীগের নেতৃত্বে থাকার সময়ে ২০১২ সালে অন্তর তার সামাজিক কাজের জন্য এলাকায় বেশ প্রশংসিত হয়।


স্কুলে ছাত্র/ছাত্রীদের বিভিন্ন অধিকার আদায়ে সোচ্চার থেকে রাজনৈতিক অধিকার আদায়ে কর্মীদের আস্থা অর্জন করে রাজনীতির দুর্গম পথ সুগম করেন অন্তর।


ভালো ফলাফল নিয়ে মাধ্যমিক পাশ করে ভর্তি হোন বেগমগঞ্জ এগ্রিকালচার ট্রেনিং ইন্সটিটিউট (এটিআই) তে। এটিআইতে পড়াবস্থায় নেতৃত্বের গুণাবলি প্রকাশ করে হয়ে উঠেন এটিআই এর ছাত্র প্রতিনিধি। দীর্ঘদিন শিক্ষার্থীদের পাশে থেকে কাজ করা এই মেধাবী ছাত্র প্রার্থী হয়েছেন সুবর্ণচর উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক পদে।


ছাত্রলীগ কর্মীদের জন্য কাজ করতে চান অন্তর। ছোট বেলা থেকে অন্তর রাজনীতিতে নেতা হিসেবে পেয়েছেন নোয়াখালী-০৪ আসনের বর্তমান সাংসদ একরামুল করীম চৌধুরীকে। নোয়াখালী জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক একরামূল করীম চৌধুরী এমপি ও তার সুযোগ্য সন্তান সাবাব চৌধুরী উপযুক্ত মনে করলে সুবর্ণচর উপজেলা ছাত্রলীগের দায়িত্ব গ্রহণে প্রস্তুত বলে প্রতিনিধিকে জানান অন্তর শিশির।


শৈলকুপায় গাছ থেকে পড়ে যুবকের মৃত্যু

শৈলকুপায় গাছ থেকে পড়ে যুবকের মৃত্যু




সম্রাট হোসেন, শৈলকুপা (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধিঃঝিনাইদহের শৈলকুপা উপজেলার কাঁচেরকোল ইউনিয়নের উত্তর মির্জাপুর গ্রামে গাছ থেকে পড়ে মামুন হোসেন (২৫) নামের এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে।


রোববার দুপুরে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। সে ওই গ্রামের বজলুল হকের ছেলে।


কচুয়া পুলিশ তদন্ত ক্যাম্পের ইনচার্জ ইন্সপেক্টর শামসুজ্জোহা জানান, শনিবার দুপুরে মামুন হোসেন প্রতিবেশী এক ব্যক্তির বাড়ির নারকেল গাছ থেকে নারকেল পাড়তে গিয়ে গাছ থেকে পড়ে যায়। এতে সে গুরুতর আহত হলে স্বজনরা তাকে উদ্ধার করে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

হাসিনুর হত্যার বিচার দাবিতে রাস্তায় নেমেছে প্রতিবন্ধীরাও

হাসিনুর হত্যার বিচার দাবিতে রাস্তায় নেমেছে প্রতিবন্ধীরাও




কুষ্টিয়া জেলা  প্রতিনিধি

মোঃ চঞ্চল হোসেন 


কুষ্টিয়া দৌলতপুর প্রতিবন্ধী ও অটিজম বিদ্যালয়ের আয়োজনে শিক্ষা অনুরাগী ও সমাজসেবক হাসিনুর রহমানের হত্যার বিচার দাবিতে র‍্যালি, শোক সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। র‍্যালিতে অংশ গ্রহন করে প্রতিবন্ধী ছাত্র ছাত্রীরা। 


রবিবার সকাল ১০ টার সময় র‍্যালি, বিদ্যালয় চত্বরে শোক সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে।


উক্ত সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, দৌলতপুর প্রতিবন্ধী ও অটিজম বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবু সালেহ্ কবির পান্না।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, সাংবাদিক আছানুল হক, দৌলতপুর প্রতিবন্ধী ও অটিজম বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক শাহজাহান আলী।


সভাপতিত্ব করেন দৌলতপুর প্রতিবন্ধী ও অটিজম বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক লিলুফার ইয়াসমিন।


উক্ত সভায় আর উপস্থিত ছিলেন, বিদ্যালয়ের সকল শিক্ষক কর্মচারী ও ছাত্র ছাত্রী ।


উক্ত সভায় হাসিনুর কে যারা হত্যা করেছে তাদের কঠিন থেকে কঠোর বিচার দাবি করেন বক্তারা তাদের বক্তব্যে বলেন,  হাসিনুরের মত মানুষকে হত্যা করে দেশের বড় ক্ষতি করলো।



যারা হাসিনুরকে হত্যা করেছে তারা দেশ ও দেশের মানুষের ভালো চাই না , যদি তারা ভালো চাইতো তাহলে হাসিনুরকে হত্যা করতো না।তাই আমাদের দাবি এই হত্যাকারীর কঠিন বিচার করা হোক, সেই বিচার দেখে  কেউ যেন এই ভাবে  মানুষকে হত্যা করতে সাহস না পাই।

শৈলকুপায় পানিতে ডুবে শিশুর মৃত্যু

শৈলকুপায় পানিতে ডুবে শিশুর মৃত্যু

সম্রাট হোসেন শৈলকুপা (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধিঃঝিনাইদহ জেলার শৈলকুপা উপজেলার ১৩ নং উমেদপুর ইউনিয়ন এর রয়ড়া গ্রামে পানিতে ডুবে  বায়জীদ নামের দেড় বছরের এক শিশু মারা গেছেন। এলাকা বাসি আমাদের জানা যে, এই শিশু টির বাবা নেই, মা ঐ গ্রামে হোসেন ঠাকুরের বাড়িতে থাকে। ছেলেটি সকাল ৭ টার দিকে বাড়ির পাশে খেলতে গিয়ে পুকরের পানিতে ডুবে মারা যায়।

সুবর্ণচরে অসহায় পরিবারের পাশে দাঁড়ালেন গোলাম রাব্বানী

 সুবর্ণচরে অসহায় পরিবারের পাশে দাঁড়ালেন গোলাম রাব্বানী

মোঃ আরিফ হোসাঈন

ঢাকা জেলা প্রতিনিধিঃ

প্রতিবন্ধী মাকে আর্থিক সহায়তা করে পিতৃহীন আট বছরের শিশু শুভ চন্দ্র সূত্রাধরকে স্কুলে পাঠানোর ব্যবস্থা করলেন ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও ডাকসুর সদ্য সাবেক জিএস গোলাম রাব্বানী৷ 


আজ রবিবার (৫ সেপ্টেম্বর)  নোয়াখালীর সুবর্ণচরের চর আমান উল্লাহ ইউনিয়নে বসবাসকারী অসহায় পরিবারটিকে নগদ ৫০ হাজার টাকা আর্থিক সাহায্য প্রদান করেন গোলাম রাব্বানী ও নোয়াখালী ৪ আসন (সদর-সুবর্ণচর) সংসদসদস্য  একরামুল করিম চৌধুরীর সুযোগ্য সন্তান সাবাব চৌধুরী৷ ওই শিশুর পড়াশোনার দায়িত্বও নেন গোলাম রাব্বানী৷ 


শুভর একমাত্র উপার্জনক্ষম বাবা যখন মারা যায়, প্রতিবন্ধী (হাঁটতে অক্ষম) মা এবং আরও দুই বোনকে নিয়ে মানবেতর দিন পার করছিল তারা৷ কোনও পথ না দেখে বাধ্য হয়ে পড়াশোনা ছেড়ে কাজে যায় অবুঝ শিশুটি৷  পরিবারটির কষ্টের কথা তুলেধরে গত ২৬ জুলাই অনলাইন নিউজ পোর্টাল বাংলা ট্রিবিউনে 'পিতৃহারা অবুঝ শিশুটির স্বপ্নহীন যাত্রা' শিরোনামে একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়৷ এরপর বিষয়টি দৃষ্টিগোচর হলে সাহায্যের আশ্বাস দেন গোলাম রাব্বানী৷ তিনি 'টিম পজেটিভ বাংলাদেশ নামের একটি অরাজনৈতিক সংগঠনের পক্ষ থেকে এ সাহায্য পরিবারটির হাতে তুলে দেন৷ সংগঠনটি মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনা এবং জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর আদর্শে উজ্জীবিত বলে জানান রাব্বানী৷


ওই পরিবারের হালধরতে কাজে যায় শুভ৷ তখন বাধ্য হয়ে স্কুল ছাড়তে হয় তাকে৷ এ সহযোগিতা পাওয়ায় পরিবারটির আয়ের সুযোগ তৈরী হবে বলে আশা করছে পরিবারটি৷ এখন শুভ এবং তার দুই বোন স্কুলে যেতে পারবে বলে জানান শিশুটির মা৷ 


জানতে চাইলে হাসি মুখে শুভ'র মা সীমা রানী শীল বলেন, 'কোনও উপায় না দেখে আমার অবুঝ শিশুকে বাধ্য হয়ে কাজে পাঠাই৷ ছেলেটার স্কুলে যাওয়া বন্ধ হয়ে যায়৷ যে সহযোগিতা পেয়েছি,তা দিয়ে আয় তৈরী করা যাবে৷ শুভ এখন স্কুলে যেতে আর কোনও বাঁধা নাই৷ তাকে পড়াশোনা করিয়ে মানুষের মতো মানুষ করতে চাই৷ পরিবারটির পাশে দাঁড়ানোর জন্য গোলাম রাব্বানীর প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন তিনি৷ 


এর আগে কয়েকজন ব্যক্তি পরিবারটিকে দু মাসের খাবার কিনে দিয়েছে বলেও জানায় শুভর মা৷ 


ঢাকা থেকে আর্থিক সহায়তা দিতে এসে গোলাম রাব্বানী বলেন,'অর্থাভাবে কোনও শিশু শিক্ষা থেকে বঞ্চিত হওয়া অত্যন্ত দুঃখজনক৷ গণমাধ্যমে শুভ'র পরিবার সম্পর্ক জানতে পারি৷ পরে আমাদের সংগঠন টিম পজিটিভ বাংলাদেশের পক্ষ থেকে সহযোগিতা করার কথা ভাবি৷ যে অর্থ সহায়তা করেছি,তা দিয়ে শুভ'র পরিবার আশা করি চলতে পারবে৷ তার শিক্ষার সমস্ত খরচ আমি বহন করব৷ ভবিষ্যতেও পরিবারটির পাশে থাকবো৷'

এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন, 


চর আমান উল্লাহ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান বেলায়েত, সুবর্ণচর উপজেলা প্রেসক্লাব সভাপতি বাবু লিটন চন্দ্রদাস,  সাংগঠনিক সম্পাদক ইমাম উদ্দিন সুমনসহ সুবর্ণচর উপজেলা ছাত্রলীগের ভিবিন্ন ইউনিটের নেতৃবৃন্দ।

নওগাঁয় ভয়াবহ বন্যার পরে বিলের পানি কমাতে ছিপ বড়শি দিয়ে মাছ ধরার ধুম

 নওগাঁয় ভয়াবহ বন্যার পরে বিলের পানি কমাতে ছিপ বড়শি দিয়ে মাছ ধরার ধুম

মোঃ ফিরোজ হোসাইন 

 রাজশাহী ব্যুরোঃ

সকাল থেকে সন্ধ্যা। তীর্থের কাকের মতো অপেক্ষা। দিনশেষে প্রাপ্তির খাতায় কখনো থেকে যায় শূন্যই। আছে অতৃপ্তি-হতাশা, তবুও নিরাশ নন কেউই। পূর্ণ উদ্যমে আবারো ধ্যান। ছিপ আর বড়শি দিয়ে মাছ শিকারিদের গল্প এমনই।

উত্তরবঙ্গের মৎস্য ভান্ডার হিসেবে পরিচিত নওগাঁর আত্রাই উপজেলা। এই উপজেলার নদী-নালা, খাল-বিল ও ফসলের মাঠে থৈ থৈ করছে অথৈয় পানি। যেদিকে চোখ যায় শুধু পানি আর পানি। কিন্তু এবার ৩বারের বন্যায় আত্রাই উপজেলার ৩ শতাধিক পুকুর থেকে মাছ ভেসে গেছে।


সাম্প্রতিক ভারি বর্ষণ ও আত্রাই নদীর বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধের ভাঙন এবং উজান থেকে নেমে আসা ঢলের পানিতে প্রতিটি মাঠ প্লাবিত হয়ে গেছে। এসব খাল-বিলের পানি কমাই এখন মাছ শিকারে মুখরিত হয়ে উঠেছে এলাকার মৎস্যজীবী  (জেলে) পরিবারের কর্তারা সহ স্ব স্ব এলাকার তরুণ, যুবক, প্রবীণ ও স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীরাও।


তারা ছিপ বড়শি সহ বিভিন্ন পদ্ধতিতে দিন রাত মাছ শিকার করছেন। আর এ মাছ বিক্রি করে স্বাচ্ছন্দে চলছে তাদের পরিবার আর কেউবা করোনায় স্কুল কলেজ বন্ধ থাকায় এইভাবে পার করছেন সময়।


সরেজমিনে বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা যায়, করোনায় মানুষের কর্মসংস্থান ও আয়ের উৎস কমে যাওয়ার কারণে অধিকাংশ মানুষ বর্ষার পানিতে মাছ শিকারে নেমেছেন।


এ বিষয়ে উপজেলার হাটকালুপাড়া ইউপির দ্বীপচাঁদপুর গ্রামের মোঃ আমিনুল ইসলাম  বলেন, মহামারি করোনা ভাইরাসের কারণে কাজ কর্ম বন্ধ থাকায় আপাতত বড়শি দিয়ে মাছ শিকার করে দিন কেটে যাচ্ছে। বন্যার কারণে ডোবায় নালায় বিভিন্ন মাছ ছড়িয়ে পড়েছে। মাছ ধরার আনন্দও অন্য রকম।


এ ব্যাপারে উপজেলার কালিকাপুর ইউনিয়নের সুমন হোসেন বলেন, বন্যার পানি বিভিন্ন জায়গায় প্রবেশ করার কারণে এখন সব জায়গায় কম বেশি মাছ শিকার করা যাচ্ছে৷

ঝিনাইদহের শৈলকুপায় অটিজম শিশু শিক্ষার্থীদের মাঝে অটিস্টিক ডিভাইস বিতরণ

 ঝিনাইদহের শৈলকুপায় অটিজম শিশু শিক্ষার্থীদের মাঝে অটিস্টিক ডিভাইস বিতরণ

সম্রাট হোসেন শৈলকুপা  (ঝিনাইদহ)ঝিনাইদহের শৈলকুপা উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসের তত্তাবধানে রবিবার বেলা ১১ টায় অটিজম শিশু শিক্ষার্থীর মাঝে অটিস্টিক ডিভাইস বিতরণ করা হয়েছে। সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে বাছাই করে ৪৪ জন শিশুদের মাঝে ৭টি চশমা,৭টি শ্রবন যন্ত্র,২৫টি হুইল চেয়ার ও ৪ জোড়া ক্রাচ বিতরণ করা হয়। এ সময় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শিকদার মোশারফ হোসেন, সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ সাইফুল ইসলাম, বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান জাহিদুন্নবি কালু, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নিলুফা ইয়াসমিন, উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো: ইসরাইল হোসেন,এটিইও মোস্তফা মাহমুদ, জিল্লুর রহমান, প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সাধারন সম্পাদক শরিফুল ইসলাম প্রমুখ।

সিলেট ছাত্রলীগের উষ্ণদৌড়ঝাঁপ আলোচনা এগিয়ে যারা

 সিলেট ছাত্রলীগের উষ্ণদৌড়ঝাঁপ আলোচনা এগিয়ে যারা



নিজস্ব  প্রতিনিধিঃবিশ্ব মহামারী করোনাভাইরাসের  সময় কাটিয়ে ওঠে দলীয় কার্যক্রম চালিয়ে যেতে কৌশলী পন্থানুসরণ করছে দেশের বিভিন্ন  রাজনৈতিক সংগঠন। তার ধারাবাহিকতায়  দেশের জনগনণের পেন্ডামিক সময়ে পাশে থাকা রাজনৈতিক দলের মধ্যে অন্যতম ভুমিকা পালন করেছে দক্ষিণ এশিয়ার প্রাচীন সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের দেশের প্রত্যেকটি ইউনিট।



শোকের মাস আগস্ট শেষ হতে-ই ছাত্রলীগ কর্তৃক আয়োজিত এক সভায় ছাত্রলীগের দিকনির্দেশক বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সভাপতি মণ্ডলীর সদস্য জাহাঙ্গীর কবির নানক তার বক্তৃতায় বলেন সাংগঠনিক গতিশীলতার জন্য দেশের যেগুলো  ইউনিটের কমিটি নেই তা দ্রুত দেওয়ার জন্য। ৩১ শে আগস্ট বাংলাদেশ ছাত্রলীগ আয়োজিত সভায় বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও সড়ক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের ১৫ সেপ্টেম্বরের মধ্যে আওয়ামীলীগ সহ সকল অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠন  ইউনিট কমিটি হয়েছে তা পুর্ণাঙ্গ করার নির্দেশ প্রধান করেন।



দায়িত্বশীল ব্যক্তিদের নির্দেশে দীর্ঘদিন ছাত্রলীগের কমিটি বিহীন সিলেট জেলা ও মহানগর ছাত্রলীগের মধ্যে শুরু হয়ে গেছে উষ্ণ দৌড় ঝাপ। নানা মেরুকরণ  ও গ্রুপভিত্তিক রাজনীতির মধ্যে স্বপ্ন বুনছেন হাজারো ছাত্রলীগ কর্মী। তবে কি আসছে সিলেট জেলা ও মহানগর ছাত্রলীগ কমিটি।



কেন্দ্রীয় ও স্থানীয় গ্রুপভিত্তিক দৌড়ঝাঁপে আলোচনা-সমালোচনার ভিত্তিতে যে ক্যান্ডিডেটদের মধ্যে আগামীর নেতৃত্ব আসতে পারে তাদের মধ্যে উল্লেখ্য সিলেট জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক এড. নাসির উদ্দিন খান অধ্যাসিত গ্রুপ তেলিহাওর এগিয়ে আছে সিলেট জেলা ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম-সম্পাদক জাওয়াদ আহমদ খান,সাক্কুর আহমদ জনি,কেন্দ্রীয় সদস্য রাহেল সিরাজ।



সিলেট মহানগর আওয়ামীলীগের সাবেক শিক্ষা সম্পাদক আজাদুর রহমান আজাদ অধ্যাসিত টিলাগড় গ্রুপ(একাংশ) মধ্যে এগিয়ে আছেন সিলেট জেলা ছাত্রলীগের সাবেক পাঠাগার বিষয়ক সম্পাদক, শিবিরের হাতে নির্যাতিত মৃত্যুঞ্জয়ী ছাত্রনেতা মেহেদী হাসান উজ্জ্বল, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সদস্য ও ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এ এম ফারহান সাদিক, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সদস্য সাদেকুর রহমান চৌধুরী,বখতিয়ার আকরাম চৌধুরী অনি, রাহাত আহমদ।



এডভোকেট রঞ্জিত সরকার অধ্যাসিত টিলাগড় গ্রুপ(একাংশ) মধ্যে এগিয়ে আছেন, সরকারি কলেজ ছাত্রলীগ নেতা নাজমুল ইসলাম, রাসেল আহমেদ, অসীম কান্তি কর, কনক পাল অরূপ, আলতাফ হোসেন মুরাদ, সুরঞ্জিত তালুকদার, দিলোয়ার হোসেন রাহী, এম.সাইফুর রহমান, রুহেল আহমদ। হাবিবুর রহমান( পংকি)



বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শফিউল আলম চৌঃ নাদেল অধ্যাসিত নুর হুসেন ব্লকের মধ্যে এগিয়ে আছেন কিশোর জাহান সৌরভ, সায়মন হুসেন, হানিফ মোহাম্মদ ও জুনেদুর রহমান জুনেদ।



সিলেট মহানগর আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আসাদ উদ্দিন আহমদ অধ্যাসিত  গ্রুপে এগিয়ে আছেন সাবেক কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সদস্য শাহ আলম শাওন, হুসাইন আহমদ সাগর, তিয়াস, পাবেল আহমদ ও তুহিন আহমদ।



যুক্তরাজ্য আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক আনোয়ারুজ্জামান চৌঃ অধ্যাসিত সুরমা গ্রুপে এগিয়ে আছেন জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক মুহিবুর রহমান, পার্থ স্বারতি দাস পাপ্পু ও মনিরুল হক পিনু, এম. মোজাব্বির আলী!



সিলেট মহানগর আওয়ামীলীগের সাবেক উপ-দপ্তর সম্পাদক বিধান কুমার সাহা অধ্যাসিত কাশ্মীর গ্রুপে এগিয়ে আছেন রাজেশ সরকার, সাবেক মহানগর ছাত্রলীগ সাংগঠনিক সম্পাদক সজল দাস অনিক, সাদিকুর রহমান, নাঈম আহমদ, মদন মোহন কলেজ ছাত্রলীগ সভাপতি সানি, এম. জাকারিয়া আহমদ, জুবের আহমদ, শেখ লিপন আহমদ।



সাবেক সভাপতি সিলেট মহানগর আওয়ামীলীগ প্রয়াত মেয়র বদর উদ্দিন কামরানের ছেলে সিলেট জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক আরমান আহমদ শিপলু অধ্যাসিত গ্রুপে এগিয়ে আছেন কেন্দ্রীয় সহ-সম্পাদক সাইফুর রহমান সাইফুর, সাবেক সদস্য সিলেট মহানগর ছাত্রলীগ আলী হোসেন আলম, সৈয়দ হুরুজ্জাম ও মো. ফুরকান আহমদ প্রমুখ। 



এছাড়াও বিভিন্ন ভাবে নিজেদের  জাহির করতে ঢাকায় কেন্দ্রীয় ছাত্রীগের নেতৃবৃন্দের কাছে তোড় খাচ্ছেন শত ছাত্রলীগ কর্মী। উল্লেখ্য গত ২০১৭ সালে জেলা কমিটি বিলুপ্ত হয় এবং ২০১৮ সিলেট মহানগর কমিটি ভেঙ্গে দেওয়া হয়।

যশোরে ফুল চাষিরা ঘুরে দাড়াতে সরকারি সহায়তা চান

 যশোরে ফুল চাষিরা ঘুরে দাড়াতে সরকারি সহায়তা চান



মোরশেদ আলম, যশোর ভ্রাম্যমান প্রতিনিধিঃকরোনা পরিস্থিতির সঙ্গে ঘূর্ণিঝড় আম্পান দেশের ফুলের রাজধানী খ্যাত যশোরের গদখালী-পানিসারার ফুলচাষিদের অর্থ সংকট ও ফুলের চারার সংকট দেখা দিয়েছে। করোনা পরিস্থিতিতে ফুল বিক্রি করতে না পারায় অর্থের অভাবে আম্পানে ক্ষতিগ্রস্ত ফুলের শেড পড়ে আছে পরিত্যক্ত অবস্থায়। ফুলচাষের মৌসুম আসলেও নতুনভাবে চাষাবাদ শুরু করতে না পারায় ফুল উৎপাদন ব্যাহত হওয়ার আশঙ্কা করছেন চাষিরা।

এ পরিস্থিতিতে চাষিদের ক্ষতিকাটিয়ে উঠে ঘুরে দাঁড়াতে হলে সরকারের সহায়তা চেয়ে দুই বছরের স্বল্প সুদে ঋণ চেয়েছেন এ খাতের সংশ্লিষ্ট ফুলচাষি-ব্যবসায়ীরা।

বাংলাদেশ ফ্লাওয়ার সোসাইটি সূত্র মতে, যশোরের ঝিকরগাছা ও শার্শা উপজেলার ৭৫টি গ্রামের প্রায় সাড়ে ৬ হাজার হেক্টর জমিতে চাষ করা হয় হরেক রকমের ফুল। ঝিকরগাছার পানিসারা-গদখালী গ্রামগুলোর রাস্তার দুইপাশে দিগন্ত বিস্তৃত জমিতে সারাবছরই লাল, নীল, হলুদ, বেগুনি আর সাদা রঙের ফুলের সমাহার হয়ে থাকে। শত শত হেক্টর জমি নিয়ে গাঁদা, গোলাপ, গ্লাডিওলাস, রজনীগন্ধা, জারবেরা, কসমস, ডেইজ জিপসি, ডালিয়া, চন্দ্রমল্লিকাসহ বিভিন্ন প্রজাতির ফুলের চাষ হয়েছে এখানে। তবে করোনার কারণে এই কার্যক্রমে ছেদ পড়েছে গদখালী-ব্যবসায়ীসহ এই সেক্টরের সংশ্লিষ্ট কার্যক্রমে।

সরেজমিনে ঘুরে ও কৃষকদের সাথে কথাবলে জানা গেছে, প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস ও ঘূর্ণিঝড় আম্পানের থাবায় থমকে গেছে দেশে ফুলের রাজধানী খ্যাত গদখালী এলাকা। গত ৫ মাসে মাসে ফুলচাষি ও ব্যবসায়ীদের ৩০০ কোটি বেশি টাকার ক্ষতি হয়েছে। হতাশায় ভেঙে পড়েছেন ফুল চাষের ওপর নির্ভর এলাকার হাজারো মানুষ। করোনায় ফুল বিক্রি করতে না পারায় নষ্ট হয়ে থাকা জমি ফেলে রেখেছে। কেউ বা অর্থের অভাবে আম্পানে ক্ষতিগ্রস্ত শেড মেরামত করছেন না। এখনই ফুলের চাষ শুরু করতে না পারলে ব্যাহত হবে এ বছরের ফুল উৎপাদন।

এমন অবস্থায় নতুনভাবে শুরু করার স্বপ্ন দেখতে শুরু করেছেন গদখালী-হাড়িয়া এলাকার ক্ষতিগ্রস্ত ফুল চাষি সানজিদা বেগম।

তারা জানান, তবে অর্থের অভাবে তিনি ফুল চাষ করতে পারছেন না। আম্পানে আমার জারবেরার ৪টি শেডই নষ্ট হয়ে গেছে। এগুলো যে মেরামত করবো টাকা নেই। ঘূর্ণিঝড় আম্পানে তার দেড় বিঘা জমির দুটি জারবেরা শেড উড়ে যায়। ব্যাংকে ১৩ লাখ টাকা এবং দুটি এনজিওতে সাত লাখ টাকার ঋণ রয়েছে। গত চার মাসে এক টাকাও ঋণের কিস্তি দিতে পারিনি। ঋণের কিস্তি পরিশোধের জন্য ব্যাংক ও এনজিও থেকে চাপ দিচ্ছে। কী করব বুঝতে পারছি না।

 

সাানজিদার  পঙ্গু স্বামী ইমামুল হোসেন বলেন, আমার ২৫ বছরের জীবনে ফুল চাষে এমন ক্ষতির মুখোমুখি হয়নি কখনো। এমন খারাপ অবস্থা আমার জীবনে আর আসেনি। আমার ২টি টিনের শেড ছিল। প্রতিটি টিন ১ হাজার ৫০ টাকা করে কিনে শেডটি তৈরি করেছিলাম। ঝড়ে শেডটি ভেঙে গেছে। এখন প্রতিটি টিন ২০০ টাকা করে বিক্রি করেছি। টিন বিক্রির টাকা দিয়ে সংসার চালাচ্ছি। বর্তমানে ৭ লক্ষ টাকার মতো মূলধন পেলে নতুনভাবে এই ফুল চাষ শুরু করতে পারবেন বলে তিনি জানান। সরকারি সহায়তা না পেলে ফুল চাষ থেকে সরে দাঁড়াবেন অনেকেই বলে তিনি জানান।

এ বিষয়ে বাংলাদেশ ফ্লাওয়ার সোসাইটির সভাপতি আবদুর রহিম বলেন, দেশে ফুলের বাজার বছরে প্রায় দেড় হাজার কোটি টাকার। দেশের চাহিদার ৮০ ভাগ ফুল যশোর থেকে সরবরাহ করা হয়ে থাকে। করোনার কারণে গত ৫ মাস ফুল বিক্রির সুযোগ না থাকায় এবার ৪৫০ কোটি টাকার ফুল নষ্ট হয়েছে। এর মধ্যে শুধু যশোরে অঞ্চলে অন্তত ৩০০ কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে। আগামি মৌসুমের বাজার ধরতে বর্তমানে সময়ে চাষিরা ফুলচাষ বীজ বপন, পরিচর্যা শুরু করে। কিন্তু মূলধনের অভাবে তারা শুরু করতে পারছে না। করোনাভাইরাস ও আম্পানে এই খাতে যে অপূরণীয় ক্ষতি হয়েছে, তা পুষিয়ে নিতে ৫০০ কোটি টাকার কৃষি প্রণোদনা প্রয়োজন।মহামারি করোনা ও ঘূর্ণিঝড় আম্পানের তান্ডবে যশোরের প্রায় সব ফুলচাষিই ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। নষ্ট হয়ে গেছে ফুলের সব ক্ষেত। ক্ষতির এতো বুঝার কারণে কোন কৃষক যেন এই খাতের বাইরে চলে না যায় সরকার এই জন্য বিভিন্ন উদ্যোগ নিয়েছে। ইতোমধ্যে ক্ষতিগ্রস্ত তালিকা প্রস্তুত করে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে বলা যানা যায় ।

যশোরের বেনাপোল গাঁজা সহ দুই মহিলা মাদক ব্যবসায়ী আটক

যশোরের বেনাপোল গাঁজা সহ দুই মহিলা মাদক ব্যবসায়ী আটক




খোন্দকার আব্দুল্লাহ বাশার, খুলনা ব্যুরো প্রধানঃপুলিশ সুপার যশোর মহোদয়ের নির্দেশে মাদক মুক্ত যশোর গঠনের লক্ষ্যে এএসপি নাভারন সার্কেল ও অফিসার ইন-চার্জ বেনাপোল পোর্ট থানার সার্বিক তত্ত্বাবধানে বেনাপোল পোর্ট থানার এসআই(নিঃ)/মোঃ মাসুম বিল্লাহ, এএসআই(নিঃ)/সিকদার মাসুম পারভেজ সংগীয় ফোর্স সহ বেনাপোল পোর্ট থানাধীন ভবেরবেড় পূর্বপাড়া গ্রামস্থ হাইওয়ে রোড ও চোরের রাস্তার সংযোগ স্থলে পাকা রাস্তার উপর হতে ৬ সেপ্টেম্বর রবিবার সকালে  আসামী ১। মোছাঃ মনি (৩৭), পিতা- মোঃ আঃ আজিজ, সাং- নরেন্দ্রপুর (আমড়াতলা), থানা- কোতয়ালী, জেলা-যশোর, ২। মোছাঃ  ফাতেমা খাতুন (২৫), পিতা- মোঃ আইয়ুব আলী শেখ, স্বামী- মোঃ শরিফ খা, সাং- যাত্রাপুর, থানা- বাগেরহাট সদর, জেলা- বাগেরহাট, এ/পি সাং- নওয়াপাড়া (গো খোলা), থানা- অভয়নগর, জেলা- যশোরদ্বয়কে ০৩(তিন) কেজি গাঁজা সহ গ্রেফতার করেন। এ সংক্রান্তে আসামীদ্বয়ের বিরুদ্ধে বেনাপোল পোর্ট থানার মামলা নং- ১১, তাং- ০৬/০৯/২০২০ ইং, ধারা-২০১৮ সালের মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন আইনের ৩৬(১) এর ১৯(খ) রুজু করা হয়েছে।

সাংবাদিক ইউনিয়ন যশোরের তিন নেতার সুস্থতা কামনা

সাংবাদিক ইউনিয়ন যশোরের   তিন নেতার সুস্থতা কামনা




প্রেস বিজ্ঞপ্তিঃ সাংবাদিক ইউনিয়ন যশোরের 

তিন নেতার সুস্থতা কামনা। 

সাংবাদিক ইউনিয়ন যশোরের সাাবেক সাধারণ সম্পাদক, বর্তমান কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য সাইফুর রহমান সাইফ, সাবেক যুগ্ম সম্পাদক গোলাম মোস্তফা মুন্না ও সদস্য কাজী রকিবুল ইসলাম অসুস্থ অবস্থায় চিকিৎসাধীন আছেন। অসুস্থ এ তিন নেতার সুস্থতা কামনা করেছেন সংগঠনটির নেতৃবৃন্দ। এক বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ তাদের দ্রুত সুস্থতার জন্য সকলের কাছে দোয়া কামনা করেন।

বিবৃতিদাতা নেতৃবৃন্দ হলেন, সংগঠনের সভাপতি শহিদ জয়, সহসভাপতি মুর্শিদুল আজিম হিরু, সাধারণ সম্পাদক আকরামুজ্জামান, যুগ্ম সম্পাদক এসএম ফরহাদ, দপ্তর সম্পাদক ইকতিয়ার রহমান ইমন, কোষাধ্যক্ষ গালিব হাসান পিল্টু ও ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক মীর কামরুজ্জামান মনি। 


যবিপ্রবির ল্যাবে ৪৮ জন করোনা শনাক্ত

 যবিপ্রবির ল্যাবে ৪৮ জন করোনা শনাক্ত


 


যশোর প্রতিনিধি: যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (যবিপ্রবি) জিনোম সেন্টারে রোববার (৬ সেপ্টেম্বর)  করোনার টেস্টের ফলাফলে ৪৮ জন করোনা শনাক্ত হয়েছে।


যবিপ্রবির অণুজীববিজ্ঞান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক, পরীক্ষণ দলের সদস্য ড. তানভীর ইসলাম জানান, যশোরের ৯২ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ২২ জনের, মাগুরার ১৫ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ৭ জনের ও নড়াইলের ৪৪ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ১৯ জনের 

নমুনাতে কোভিড-১৯ পজিটিভ পাওয়া গেছে। 


অর্থাৎ যবিপ্রবির ল্যাবে মোট ১৫১ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ৪৮ জনের করোনা পজিটিভ এবং ১০৩ জনের নেগেটিভ ফলাফল এসেছে। 


রুদ্র অয়ন এর কবিতা থাকো হৃদয় জুড়ে

রুদ্র অয়ন এর কবিতা      থাকো হৃদয় জুড়ে





মনটা সে তো বড় অবুঝ
কি করে বুঝাই তারে?
তোমায় ছাড়া চাইনা কিছু
এ জগৎ সংসারে।

একাকী নিরব রাতে তুমি
ওগো যখন তখন,
ঘুমের মাঝে দেখাও এসে 
প্রেমময় স্বপন। 

ঘুম ভাঙলে পাইনা কাছে
থাকো কেন দূরে দূরে,
এসো তুমি বুকের জমিনে
থাকো এ হৃদয় জুড়ে।

হবিগঞ্জে রোদ বৃষ্টি উপেক্ষা করে ধান কাটায় ব্যস্ত কৃষকরা

হবিগঞ্জে রোদ বৃষ্টি উপেক্ষা করে ধান কাটায় ব্যস্ত কৃষকরা




লিটন পাঠান, হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি


হবিগঞ্জ জেলা শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলায় এবার লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে বেশি জমিতে আউশ ধানের আবাদ হয়েছে। ক্ষেত থেকে ধান ঘরে তুলতে ব্যস্ত সময় পার করছেন উপজেলার কৃষকেরা। শায়েস্তাগঞ্জে কখনো রোদ কখনো বা বৃষ্টি উপেক্ষা করেই আউশ ধান কাটা শুরু হয়েছে। এবার ধানের দাম ভাল থাকায় কৃষকের মুখে ফসলের হাসি দেখা গেছে। কিন্তু বৈরী আবহাওয়ায় পাকা ধান কিভাবে ঘরে তুলবেন সেজন্য অনেকেই বেশ চিন্তিত। এক টানা বৃষ্টির কারণে ফসলী জমিতে পানি জমে থাকায় ধান কাটতে কৃষকের সমস্যা হচ্ছে, ফলে তারা ধান গাছের খড়ের অংশ বাদ দিয়ে শুধু ধানের ছড়া কেটে জমাট করে বাড়ি নিয়ে ফিরছেন।


জানা যায় শায়েস্তাগঞ্জে বিভিন্ন ইন্ডাস্ট্রি গড়ে উঠার সুবাদে যারা ধান কেটে জীবিকা নির্বাহ করতেন তারা অধিকাংশই এখন চাকুরী করেন, ফলে ধান কাটার লোক সংকটে অনেকেই সঠিক সময়ে ধান গড়ে তুলতে পারছেন না। আবার, স্থানীয় যারা ধান কাটছেন তারা অতিরিক্ত মজুরী নিচ্ছেন। এক একর ধান কাটার জন্য দুই হাজার টাকা করে দিতে হয়। সেই ধান আবার জমির মালিককেই গাড়ি বহন করে বাড়িতে নিয়ে মাড়াই দিতে হয়। যেসব কৃষকদের গরু আছে, তারা গরু দিয়ে মাড়াই করে ধান সংগ্রহ করেন। আবার যাদের গরুর প্রধান খাদ্য খড়ের তেমন প্রয়োজন পড়েনা তারা ধান কাটার মেশিন দিয়ে ধান সংগ্রহ করেন।


উপজেলা কৃষি কার্যালয় ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, চলতি বর্ষা মৌসুমে উপজেলায় ৩ হাজার ৫শ’ হেক্টর জমিতে আউশ ধান আবাদের লক্ষ্যমাত্রা ছিল। লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে এ বছর ৪ হাজার ৬শ ১০ হেক্টর জমিতে বর্ষালী আউশ ধানের চাষ করেন কৃষকেরা। এর মধ্যে কৃষকেরা উপসি জাতের আউশ ৪হাজার ৪শ ৯০ হেক্টর এবং হাইব্রিড জাতের ১শ ২০ হেক্টর ধান চাষ করেছে। উপজেলার সুরাবই গ্রামের কৃষক আলী হোসেন বলেন, সরকারি প্রণোদনায় আউশ চাষে কৃষকদের উৎসাহিত করেছে। উপজেলা কৃষি অফিসের মাধ্যমে বীজ সহায়তা দেওয়া এ বছর আমাদের প্রতিবেশী অনেকেই আউশ ধান চাষ করেছে।


কৃষি কর্মকর্তাদের পরামর্শ নিয়ে সময় মত জমি পরিচর্যা ও রক্ষণাবেক্ষণ করায় অন্য বছরের তুলনায় ভালো ফলন পেয়েছে তারা। পুরাসুন্দা গ্রামের কৃষক অলি মিয়া বলেন, গত দুই সপ্তাহ আগে ধান কাটা শুরু হয়েছে। বৃষ্টির কারণে মাড়াইয়ে কিছুটা সমস্যা হচ্ছে। বাজারে ধানের দাম ভালো। অন্য ধানের চেয়ে বর্ষালী আউশ আবাদে লাভ বেশি। লাভ বেশি হওয়ায় আগামী মৌসুমে আরও বেশি জমিতে আউশ আবাদ করবেন বলে জানান তারা। এ বিষয়ে শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলার দায়িত্বপ্রাপ্ত হবিগঞ্জ সদর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সুকান্ত ধর বলেন, শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলায় আউশ আবাদ জমির পরিমাণ-১৩৫০ হেক্টর। 


এবার আমাদের উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা ৪৫০০ টন (সম্ভাব্য) ৩.৫ টন/হেক্টর। আসন্ন আমন আবাদের টার্গেট ২০০০ হেক্টর, বর্তমানে আউশ কর্তন ৭৫℅ শেষ ধানের বাজার মূল্য ৬৫০ টাকা/মণ (ভেজা) ৯৫০ টাকা/মণ (শুকনো)

আউশ আবাদে খরচ তুলনামূলক কম তাই লাভ বেশী। সরকারি প্রণোদনা পাওয়ার কারণে কৃষকেরা আউশ ধান চাষে আগ্রহী হয়ে উঠেছেন। আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় এবার ফলন বেশ ভালো হয়েছে। এবছর ধানের দাম বেশি পাওয়ায় আগামীতে এ ধানের আবাদ আরও বাড়বে।

চোঁখের জল কবি মোঃআবু বকর সিদ্দীক

চোঁখের জল    কবি মোঃআবু বকর সিদ্দীক




চোঁখের জলে ভাসিয়ে দিলাম,

কান্না করে সারাদিন।

মানুষ গুলোর চির বিদায়,

আসবে না আর কোনোদিন।


অগ্নি দগ্ধে জীবন গেলো,

মসজিদেরই ভিতরে।

উঠবে তারা শহিদ হয়ে,

কঠিন হাশরে।


কত জনের আপন জন,

কত কাছের লোক!

কোনোদিনও ভাবেনি তারা,

আজকে হবে পরলোক।


মরন কখন আসবে রে ভাই,

সবার অজানা,

সঠিক পথে মরন হলে,

জান্নাত হলো ঠিকানা।


করছি দোয়া সবার তরে,

আমরা মানব সকল।

জান্নাতেরই হও মেহমান,

এটাই থাকলো বহল।

১০১ জন অবৈধ অভিবাসী বাংলাদেশীকে ফেরত পাঠিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র!

 ১০১ জন অবৈধ অভিবাসী বাংলাদেশীকে ফেরত পাঠিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র!




মোহাম্মদ বেলাল উদ্দিন সিনিয়র স্টাফ রিপোর্টার 


বিশেষ বিমানে করে নারীসহ ১০১ জন বাংলাদেশীকে ফেরত পাঠিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র! গতকাল শনিবার দুপুর ১২ টায় একটি বিশেষ বিমানে করে এই ১০১ জনকে বাংলাদেশে ফেরত পাঠিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র সরকার।


গতকাল ৫ সেপ্টেম্বর, শনিবার দুপুরে যুক্তরাষ্ট্রের একটি বিশেষ বিমানে করে কয়েকজন নারী সহ ১০১ জন বাংলাদেশীকে ফেরত পাঠিয়েছে মার্কিন সরকার। ফেরত আসা বাংলাদেশীদের বেশিরভাগই ছিলেন তরুন।


জানা যায়, ফেরত পাঠানো এই ১০১ জনের সকলেই বিভিন্ন সময়ে প্রায় ২৫ থেকে ৩০ লাখ টাকা খরচ করে অন্যান্য দেশ হয়ে অবৈধভাবে যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশ করেছিলেন এবং সেখানে অবৈধভাবে কাজ করছিলেন। পরবর্তীতে যুক্তরাষ্ট্রের হোমল্যান্ড সিকিউরিটি এর অভিযানে তারা গ্রেফতার হন, এবং ডিপোর্টেশন ক্যাম্পে বেশ কিছুদিন থাকার পরে গতকাল বিশেষ বিমানে করে তাদের দেশে ফেরত পাঠায় যুক্তরাষ্ট্র সরকার।

জমজমের পানি দিয়ে ধোয়া হলো কাবা শরীফ

জমজমের পানি দিয়ে ধোয়া হলো কাবা শরীফ



মোহাম্মদ বেলাল উদ্দিন সিনিয়র স্টাফ রিপোর্টারঃজমজমের পানি দিয়ে মক্কা নগরীর গভর্নর ও প্রধান খতিবের নেতৃত্বে ধোয়ার কাজ শেষ হলো পবিত্র কাবা শরীফের। গত বৃহস্পতিবার স্থানীয় সময় রাত সাড়ে আটটায় অর্থাৎ বাংলাদেশ সময় রাত সাড়ে এগারোটায় শুরু করা হয়েছিল কাবা শরিফ ধোয়ার কাজ।


কাবা শরীফ ধোয়া ও পরিচ্ছন্নতার কাজে নেতৃত্ব দেন সৌদি বাদশাহ সালমানের পক্ষে মক্কা নগরীর গভর্নর প্রিন্স খালিদ আল ফয়সাল। এ খবর নিশ্চিত করেছেন সৌদি গেজেট।


যদিও পূর্বঘোষণা ও রীতি অনুযায়ী পবিত্র কাবা শরীফ ধোয়ার কথা থাকে সকালে , কিন্তু এবারের রীতি ভেঙ্গে এশার নামাজের পর পবিত্র কাবা ধোয়ার কাজ সম্পূর্ণ হল।

কাবা ধোয়ার কাজে হারামাইন প্রেসিডেন্সির চেয়ারম্যান ও কাবা শরিফের প্রধান খতিব শায়খ আবদুর রহমান আস সুদাইস, স্পেশাল ইমারর্জেন্সি ফোর্সের কমান্ডার ও হজ সিকিউরিটি ফোর্সের কমান্ডার, মন্ত্রিপরিষদের সদস্য ও দেশের গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিরাও অংশ নেন। অন্য সময় বিভিন্ন মুসলিম দেশের রাষ্ট্রদূতরা অংশ নিলেও এবার করোনা পরিস্থিতির কারণে তাদের কাবা ধোয়ার কাজে আমন্ত্রণ জানানো হয়নি।


কাবা ধোয়ার উপলক্ষে সন্ধ্যার পরপরই খুলে দেওয়া হয় কাবা শরীফের দরজা। কিন্তু মক্কায় সন্ধ্যার পর ভারী বৃষ্টিপাত হওয়ায় কিছুটা বিলম্বিত হয় কাবা ধোয়ার কাজ। বৃষ্টি থামার পরক্ষণেই সবাই কাবা শরীফের ঘরে প্রবেশ করেন। তারা পবিত্র কাবা ঘরের অভ্যন্তরে পবিত্র জমজমের পানির সঙ্গে গোলাপ , উন্নত মানের সুগন্ধি উদ ও কস্তুরি মিশ্রিত পানি দিয়ে ধোয়ার কাজ করেন। এবং পবিত্র কাবা ধোয়ার কাজ শেষ করে (হাজরে আসওয়াদে) কালো পাথর চুম্বন করেন। অতঃপর কাবা তাওয়াফ করেন। এবং তাওয়াফ শেষে নামাজ আদায় করেন মাকামে ইব্রাহিমে।

কাবা শরীফ ধোয়ার সময় ২ ঘন্টা দরজা খোলা থাকে। এ সময় বিশেষ বাহিনীর সদস্যরা কাবা শরীফের চারদিকে নিরাপত্তার বলয় তৈরি করে রাখেন।

যদিও রীতি অনুযায়ী প্রত্যেক মহরম মাসে পবিত্র কাবা শরীফ ধোয়া হয় এবং আরাফার দিন (৯ জিলহজ) কাবার গিলাফ বদলানো হয়। সৌদি সরকার কাবাকে সবিশেষ গুরুত্ব দিয়ে থাকেন। সৌদি বাসিন্দাদের জন্য একটা উৎসব ও বটে

কারণ কোরআন ও হাদিসে বায়তুল্লাহর মর্যাদা দান , একে পবিত্র রাখা ও পরিশুদ্ধ করার প্রতি উৎসাহিত করা হয়েছে।নবীর একটি আদর্শ হলো কাবাঘর পরিচ্ছন্ন করার উদ্বেগ


মক্কা বিজয়ের দিন সাহাবায়ে কেরামদের নিয়ে কাবা ঘরে প্রবেশ করে কাবা শরীফের বাহিরে ও মৌলিকভাবে কাবাঘরের পরিশুদ্ধি অভিযান পরিচালনা করেন। এবং কাবায় থাকা মূর্তিগুলোকে অপসারণ করেন। পরবর্তীতে ওই ধারা অব্যাহত রাখেন খোলাফায়ে রাশেদীনও। এরই ধারাবাহিকতায় সুন্নতের অনুসারে বর্তমান শাসকরাও কাবাঘর ধোয়া অব্যাহত রেখেছেন।

পটিয়া পৌরসভা ও উপজেলা যুবদলের য়ৌথ মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত

পটিয়া পৌরসভা ও উপজেলা যুবদলের য়ৌথ মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত





সেলিম চৌধুরী পটিয়া প্রতিনিধিঃচট্টগ্রামের পটিয়া পৌরসভা ও উপজেলা যুবদলের য়ৌথ মতবিনিময় সভা ৫ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যায় স্থানীয় একটি কমিউনিটি সেন্টারে পটিয়া পৌরসভা যুবদলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আজিজুল ইসলাম আজিজ এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা যুবদলের সিনিয়র সহসভাপতি মোঃ শাহজাহান চৌধুরী। যুবদল নেতা মোঃ সেলিম এর সঞ্চলনায় এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন দক্ষিণ জেলা যুবদলের যুগ্ম সম্পাদক আল রায়হান চৌধুরী সোহেল, জাহাঙ্গীর আলম, আবদুস সালাম, শহিদুল ইসলাম (পটল) সুজন মেম্বার, মামুন, পৌরসভা যুবদল নেতা মফিজুর রহমান, নুরুল হাকিম, এস. এম.রেজা রিপন,  রাকিব  হাসান,রবিন, ওসমান, আনোয়ার, জসিম, আলী, লোকমান, করিম, আলমগীর,উপজেলা যুবদল নেতা সাজ্জাদ আলম আলভী,আজিজ, টিটু,ছৈয়দ হোসেন, লিটু চৌধুরী প্রমুখ।  সভায় প্রধান অতিথি চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা যুবদলের সিনিয়র সহসভাপতি মোঃ শাহজাহান চৌধুরী বলেন,বিগত সময়ে আন্দোলন সংগ্রামে রাজপথে যারা ত্যাগ শিকার করেছে মামলা হামলা নির্য়াতন


 কারাভরন করেছে তাদেরকে দিয়ে আগামীতে দলকে সুসংগঠিত যুগোপযোগী শক্তিশালি করার জন্য পটিয়া পৌরসভা ও উপজেলা যুবদলের কমিটিতে নেতৃত্বে আনা হবে। তিনি যুবদলকে  শক্তিশালি করার জন্য সকলকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করার আহবান জানান।  

মোঃ মাসুম হাওলাদারকে পত্তাশী ইউনিয়ন ছাত্রলীগের ১নং সাংগঠনিক সম্পাদক হিসেবে দেখতে চায়

 মোঃ মাসুম হাওলাদারকে পত্তাশী ইউনিয়ন ছাত্রলীগের ১নং সাংগঠনিক সম্পাদক হিসেবে দেখতে চায়



মিঠুন কুমার রাজ, 

স্টাফ রিপোর্টার। 


এশিয়া মহাদেশের সর্বশ্রেষ্ঠ সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ।  


পিরোজপুরের ইন্দুরকানী উপজেলার পত্তাশী ইউনিয়ন ছাত্রলীগের ১নং সাংগঠনিক সম্পাদক পদে মোঃ মাসুম হাওলাদারকে দেখতে চায় পত্তাশী ইউনিয়ন ছাত্রলীগের কর্মীরা। ছাত্র জীবন থেকেই বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে বুকে ধারণ করে ছাত্রলীগের সাথে সংযুক্ত ছিলো এই ছাত্রনেতা। বিগত দিনগুলোতে রাজপথে থেকে সৎ, সাহসীর সাথে তিনি মাঠে শত্রুদের সাথে লড়াই করে গেছেন। তার এই পরিশ্রমকে বিথা যেতে দিতে চায়না পত্তাশী ইউনিয়ন ছাত্রলীগের কর্মীরা। তারা এই ত্যাগী নেতাকে পত্তাশী ইউনিয় ছাত্রলীগের ১নং সাংগঠনিক সম্পাদক  হিসেবে দেখতে চায় এবং ছাত্রলীগের উক্ত পদের যোগ্য বলে দাবী করেন। এছাড়াও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক ও সোসাল মিডিয়ায় সর্বাধিক রাজনৈতিক নেতা, বন্ধু, স্নেহের ভাই, শ্রদ্ধেয় ভাই ও আত্নীয়-স্বজন সহ শুভাকাঙ্ক্ষীরা তাকে পত্তাশী ইউনিয়ন ছাত্রলীগের ১নং সাংগঠনিক সম্পাদক পদে দেখার জন্যে পোস্ট করেছেন ও শুভকামনা জানিয়েছেন।