আসন্ন শীতকালে কোভিড-১৯ পরিস্থিতি আরও খারাপ হতে পারে - প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

আসন্ন শীতকালে কোভিড-১৯ পরিস্থিতি আরও খারাপ হতে পারে - প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা




নিউজ ডেস্কঃ আসন্ন শীতকালে কোভিড-১৯ পরিস্থিতি আরও খারাপ হতে পারে উল্লেখ করে এই মুহূর্ত থেকেই তা মোকাবিলায় প্রস্তুতি গ্রহণ করতে সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

রোববার ৩৪টি বাণিজ্যিক ব্যাংকসহ বিভিন্ন সংগঠনের কাছ থেকে প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ ও কল্যাণ ফান্ডে অনুদান গ্রহণকালে তিনি এ কথা বলেন। গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী এই অনুদান হস্তান্তর অনুষ্ঠানে যোগ দেন। 

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘শীতকাল আসন্ন। কোনো কোনো ক্ষেত্রে করোনা পরিস্থিতির আরও অবনতি ঘটতে পারে। আমাদের এই মুহূর্ত থেকেই তা মোকাবিলার জন্য প্রস্তুতি নিতে হবে।’

প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে তার মুখ্য সচিব ড. আহমদ কায়কাউস প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় (পিএমও) প্রাঙ্গণে এই অনুদানের চেক গ্রহণ করেন।

করোনা মোকাবেলায় জাতির সহায়তায় প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ ও কল্যাণ তহবিলে এই আর্থিক অনুদান দেওয়ার জন্য শেখ হাসিনা সংগঠনগুলোর প্রতি কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন।

এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘সবাই এই পরিস্থিতিতে (করোনাকালে উদ্ভূত পরিস্থিতিতে) অত্যন্ত আন্তরিকতার সাথে কাজ করেছেন। আর এ জন্যই আমরা এই করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলা করতে সক্ষম হয়েছি।’

কোভিড-১৯-এর অভিঘাত থেকে দেশের অর্থনীতিকে মুক্ত রাখতে প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণাসহ সরকারের আন্তরিক প্রচেষ্টার কথা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, ‘আমরা দেশের ব্যবসা-বাণিজ্য ও অর্থনীতিকে সচল রাখতে কার্যকরী পদক্ষেপ গ্রহণ করেছি। আমরা প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা করেছি এবং যেখানে যা প্রয়োজন তাই দিয়েছি। কারণ জনগণের সেবা করাই আমাদের প্রধান লক্ষ্য।’

দেশের যে কোনো সংকটে বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব ব্যাংক (বিএবি) তাদের হাত বাড়িয়ে দেওয়ায় প্রধানমন্ত্রী তাদের ধন্যবাদ জানান।

সৃজন সাংস্কৃতিক পরিষদের সদস্য সংগ্রহ চলছে

সৃজন সাংস্কৃতিক পরিষদের সদস্য সংগ্রহ চলছে





রিয়াজুল করিম রিজভী

চট্টগ্রাম ব্যুরো প্রধান


সৃজন সাংস্কৃতিক পরিষদ সাংস্কৃতিক গুণাবলী বিকাশে পরিবেশ সৃষ্টিতে সহযোগিতা আলোকে সদস্য সংগ্রহ কর্মসূচি চলছে। গতিশীল কর্মপদ্ধতি ও সুনাগরিক সৃষ্টির লক্ষে কর্মশালা, সেমিনার, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, বিনামূল্যে সেবা ও সচেতনতা মূলক অনুষ্ঠানের আয়োজন করার লক্ষ্যে নিয়ে সামাজিক, সাংস্কৃতিক কাজ করার জন্য ১২ বছরের উর্ধ্বে ০৩১-২৮৫৩৭৭০, ০১৫৫৮-৪৫৪৭৯৪, ০১৯০২-৮৪৩৫৩৮ নম্বরে যোগাযোগ করে যেকোন স্কুল- কলেজ পড়ুয়া ছেলে-মেয়ে সদস্য হিসেবে অংশ নিতে পারবে। সদস্য সংগ্রহ কর্মসূচী শুরু গত ১৯ সেপ্টেম্বর শনিবার থেকে আগামী ১৯ অক্টোবর পর্যন্ত সদস্য হওয়ার জন্য যোগাযোগ প্রতিদিন বিকাল ৪টা-৭টা সৃজন সাংস্কৃতিক পরিষদ কার্যালয় ৩১, আলিফ বিপনী সেন্টার ২য় তলা নজির আহম্মদ চৌধুরী রোড আন্দরকিল্লা চট্টগ্রাম।

পটিয়ার ছনহরা ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী হচ্ছেন ওসমান আলমদার !

 পটিয়ার ছনহরা ইউপি নির্বাচনে  চেয়ারম্যান প্রার্থী হচ্ছেন ওসমান আলমদার !



পটিয়া (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধিঃ- আগামী ইউপি নির্বাচনে ছনহরা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান প্রার্থী হওয়ার আগ্রহ প্রকাশ করেছেন দলের দুঃসময়ের কান্ডারী সাবেক যুবলীগ ও ছাএলীগ নেতা বর্তমান উপজেলা আওয়ামীগ নেতা ওসমান আলমদার। তিনি ২০ সেপ্টেম্বর দুপুরে   পটিয়ায় উপজেলার স্থানীয় সাংবাদিকদের সঙ্গে আওয়ামীলীগ নেতা ওসমান আলমদার মতবিনিময় করেছেন। রবিবার দুপুরে স্থানীয় একটি বেঁস্তোরায় মতবিনিময় সভায় অনুষ্ঠিত হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন-উপজেলার ছনহরা ইউনিয়ন আ’লীগের ১নং ওয়ার্ডের সভাপতি ছনহরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা এয়াকুব আলী, সাবেক ছাএনেতা প্রবাসী শহীদুল ইসলাম তালুকদার। আগামী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে উপজেলার ছনহরা ইউনিয়নে নৌকা প্রতীক নিয়ে চেয়ারম্যান পদে লড়তে প্রস্তুতিমূলক সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময় করেছেন। এতে স্থানীয় ও জাতীয় দৈনিক পত্রিকার বিভিন্ন সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন।এসময় আ’লীগ নেতা ওসমান আলমদার বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবুর রহমানের সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আগামী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে তৃণমূল নেতাদের মূল্যায়ন করবেন। যারা দলের দু:সময়ে ভুমিকা রেখেছেন আশা করি আগামী ইউপি নির্বাচনে তাদেরকে মনোয়ন দিবেন। জাতীয় সংসদের হুইপ সামশুল হক চৌধুরী এমপি পটিয়া উপজেলা ও পৌর এলাকায় ব্যাপক উন্নয়ন কাজ করেছেন। তারই ধারাবাহিকতায় ছনহরা ইউনিয়নে উন্নয়ন কাজ করা হয়েছে। দলীয়ভাবে ওসমানকে প্রার্থী মনোনীত করার দাবি জানান।তিনি পটিয়ার সাংবাদিকদের সহযোগিতা কামনা করে বলেন দলের জন্য নিবেদিত কর্মী হিসেবে সত্যি সংবাদ লেখনির মাধ্যমে প্রকৃত ত্যাগি নেতা কর্মীদের মুল্যায়ন হয় সে বিশ্বাস তার রয়েছে বলে তিনি জবাবদিহিতা মুলক সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় করে আগামী ইউপি নির্বাচনে প্রস্তুতির জানান দেন।     


হাসিনুরের হত্যাকারীরা ধুম্রজ্বালের মধ্যে থেকে যাচ্ছে : সর্দার আতিক

 হাসিনুরের হত্যাকারীরা ধুম্রজ্বালের   মধ্যে থেকে যাচ্ছে : সর্দার আতিক




কুষ্টিয়া প্রতিনিধি:কুষ্টিয়া দৌলতপুরে মথুরাপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ'র আয়োজনে টিপুনেওয়াজের অর্থায়নে  রবিবার রাত ৯ টার সময় মথুরাপুর নবিন সূর্য সংসদসদস্য ক্লাব চত্বরে  শোক সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে।

উক্ত অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, দৌলতপুর উপজেলা ছাত্রলীগ এর সাবেক সভাপতি সর্দার আতিয়ার রহমান আতিক,যুবলীগ নেতা ওয়াসিম কবিরাজ,  সাবেক যুবলীগ নেতা সোহেল রানা, সাবেক ভারপ্রাপ্ত  চেয়ারম্যান হাফিজুর দেওয়ান, আওয়ামীলীগ নেতা গোলাম মস্তোফা নাড়ু, শিবুল হাজী, মুজ্জামেল হক,হারেজ উদ্দিন সহ উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন থেকে আগত আওয়ামীলীগ সহ সহযোগী সংগঠনের নেতা কর্মী বৃন্দ।

উক্ত শোক সভা ও দোয়া মাহফিলে সভাপতিত্ব করেন, উপজেলা আওয়ামীলীগ'র সাবেক তথ্য ও গবেষনা বিষয়ক সম্পাদক টিপু নেওয়াজ।

উক্ত শোক সভায় সর্দার আতিক তার বক্তব্যে উল্লেখ করেন হাসিনুর হত্যাকান্ডের কোন কিছু আমরা সঠিক ভাবে বুঝতে পারছিনা বিষয়টি ধুম্রজ্বালের মত মনে হচ্ছে তাই প্রশানের কাছে দাবি করছি সকল ধুম্রজ্বালের অবসান ঘটিয়ে হাসিনুর হত্যাকারীদের আইনের আওতায় আনা হবে। সভাপতি তার বক্তব্যে উল্লেখ করেন যারা ভেবেছিলেন হাসিনুরকে হত্যা করে এম পির সকল কার্যক্রম বন্ধ করে দিবেন তাদের ধারনা ভুল। বাদশাহ্ তো বাদশাহ্ তার সাথে কারোর তুলনা হবেনা। আলোচনা শেষে দোয়া অনুষ্ঠিত হয়।

সাতক্ষীরা জেলা পরিষদের উদ্যোগে ব্রক্ষরাজপুর জামে মসজিদে চেক হস্তান্তর

 সাতক্ষীরা জেলা পরিষদের উদ্যোগে ব্রক্ষরাজপুর জামে মসজিদে  চেক হস্তান্তর



আজহারুল ইসলাম সাদী,  স্টাফ রিপোর্টার, 


সাতক্ষীরা জেলা পরিষদের উদ্যোগে, জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান সৈয়দ আমিনুর রহমান বাবু'র মাধ্যমে রোববার (২০ সেপ্টেম্বর)  সাতক্ষীরা সদরের  ব্রহ্মরাজপুর জামে মসজিদে ৫০ হাজার টাকার চেক হস্তান্তর করেন,

এসময় উপস্থিত ছিলেন সাতক্ষীরা জেলা  আওয়ামী লীগের সাবেক ত্রাণ বিষয়ক সম্পাদক ও অতিঃ পি পি এ্যাডঃ মোঃ আজহারুল ইসলামসহ মসজিদ কমিটির অনান্য নেতৃবৃন্দ।

কুড়িগ্রামে একই পরিবারের তিন ভাই পেল হুইল চেয়ার

কুড়িগ্রামে একই পরিবারের তিন ভাই পেল হুইল চেয়ার




মোঃইয়ামিন সরকার আকাশ।

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধিঃ

কুড়িগ্রাম জেলার রাজারহাট উপজেলায় হুইল চেয়ার পেলেন একই পরিবারের  আপন তিন ভাই। তাদের বাড়ি রাজারহাট উপজেলার মহাদেব মোক্তার পাড়া গ্রামে।এই গ্রামের শহিদুল ইসলামের তিন ছেলে মুর্শিদুল ইসলাম (১৫), মামুন ইসলাম(১১) ও মাহিন বাবু (২) এই তিন জন। এদের দুঃখ দুর্দশার খবর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশ হলে, ঢাকাস্থ জাতীয় প্রতিবন্ধী উন্নয়ন ফাউন্ডেশন এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক দ্রুত ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ প্রদান করেন।

 ২০ সেপ্টেম্বর,(রোববার)  দুপুরে "কুড়িগ্রাম উন্নয়ন প্রতিবন্ধী কেন্দ্র" এ আনুষ্ঠানিকভাবে তিন ভাইকে হুইলচেয়ার প্রদান করা হয়।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, "কুড়িগ্রাম প্রতিবন্ধী উন্নয়ন ফাউন্ডেশন" এর কর্মকর্তা ডা. মোঃ আরিফুর ইসলাম, সদর উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা জনাব মোঃ হাবিবুর রহমান।


ওই তিন প্রতিবন্ধীর বাবা শহিদুল ইসলাম জানান- তিনি রিকশা চালিয়ে কোনোমতে জীবিকা নির্বাহ করেন। হুইলচেয়ার কেনার সামর্থ্য তার নেই। অনেকে হুইলচেয়ার দেয়ার কথা বলে দেয়নি। আজ তার তিন ছেলে হুইল চেয়ার পাওয়ায় তিনি অনেক খুশি।


"কুড়িগ্রাম প্রতিবন্ধী উন্নয়ন ফাউন্ডেশন " এর কর্মকর্তা মোঃ আরিফুর ইসলাম জানান, প্রতিবন্ধী উন্নয়ন ফাউন্ডেশন চিকিৎসাসহ প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের বিভিন্ন সহায়তা করে আসছে। মুজিব বর্ষ উপলক্ষে জাতীয় প্রতিবন্ধী ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালকের নির্দেশে এই তিন প্রতিবন্ধী ভাইকে হুইলচেয়ার দেয়া হলো। এ কার্যক্রম অতীতে চলমান ছিলো, এখনো চলমান আছে এবং তা ভবিষ্যৎ এ চলমান থাকবে।

ব্যারিস্টার সানজীদ, অনন্য যোগ্যতার অসবাধারণ নিরহংকারী মানুষ

ব্যারিস্টার সানজীদ, অনন্য যোগ্যতার অসবাধারণ নিরহংকারী মানুষ

 



নিউজ ডেস্কঃ জন্মদিন এলেই মানুষের আগ্রহের যেনো শেষ নেই। দিনটি সবার কাছেই অন্যরকম। চট্টগ্রাম শহরে বসে আমরা অনেক কিছুই দেখতে পাই না, বুঝতে পারি না, অনুভবও করি না। ইট পাথরের জগৎটা ওই বস্তুগুলোর মতোই জড় ও কঠিন। আপনি ব্যস্ত জীবনযাপনের মাঝে প্রকৃতির কাছে গিয়ে একটু হাফ ছাড়বেন, তার উপায়ও কিন্তু নেই বললেই চলে।


এগিয়ে চলা বিংশ শতাব্দীর ডিজিটাল ওয়ার্ল্ডে সোশ্যাল মিডিয়াই এখন জীবনের সবটাজুড়ে। তাই বলে কি একটি স্ট্যাটাসই হতে পারে ভালবাসার বহি:প্রকাশ? না, জন্মদিনের শুভেচ্ছা স্ট্যাটাস দিয়েই ভালবাসা হয় না। ভালবাসা থাকে অন্তরে। ভালবাসার মানুষটার প্রতিটা মুহুর্ত হউক আনন্দ ও উদ্ভাসিত আলোর মতো।


বলছিলাম চট্টগ্রাম তথা রাউজানের কৃতি সন্তান ব্যারিস্টার সানজীদ রশিদ চৌধুরীর কথা। 


আজ ১৯ সেপ্টেম্বর সানজিদ রশিদ চৌধুরীর শুভ জন্মদিন। সবসময় সদা নিরহংকার, সাদাসিধে মানুষ। দেখেছি উনার উদার মনোভাব, দেখেছি ওনার বিশাল মনের ভান্ডার। অঢেল সম্পত্তির মালিক হওয়া সত্ত্বেও সরল জীবনযাপন তার। অফুরন্ত ভালোবাসার তার। খুব বেশিই ভালোবাসতে জানেন তিনি। নিজের ছোট ভাইয়ের মতোই দেখেন সানজীদ চৌধুরী। খোঁজখবর নেন সব সময়। কখনও কখনও শাসনও করেন মৃদু স্বরে। ওনার মাঝেই খুঁজে পেয়েছি আসল নেতৃত্বের গুনাবলি। যখনই ওনার সঙ্গে বসে খাওয়ার সুযোগ হয়েছে ঠিক তখনই দেখেছি নিজ হাতে আপ্যায়ন করেছেন তিনি। 


তরুণ প্রজন্মের অহংকার ব্যারিস্টার সানজীদের মা হলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা, বরেণ্য শিক্ষাবিদ, প্রাচ্যের অক্সফোর্ড খ্যাত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজ বিজ্ঞান বিভাগের চেয়ারম্যান, সংরক্ষিত আসনের এমপি, জাতীয় পার্টির সিনিয়র প্রেসিডিয়াম সদস্য, সংস্কৃতি মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য প্রফেসর ড.মাসুদা এম.রশিদ চৌধুরী। এই মহিয়সী মানুষটির কাছে আমি মায়ের আদর খুঁজে পেয়েছি। বরেণ্য এই শিক্ষাবিদ করোনাকালীন দুর্যোগ মহামারিতে ফোন করে আমার ও আমার পরিবারের খোঁজ নিয়েছেন বহুবার। এখানেই শেষ নয়, আর একটি বিষয়ে আমি এখনো শিহরিত হই, আর তা হলো তিনি মা দিবসে আমাকে ফোন করে উইশ করেছেন। মায়ের ভালোবাসা দিয়েছেন তিনি। দিয়েছেন অধিকার আর স্নেহ মমতা। লাখ স্যালুট, বীর মুক্তিযোদ্ধা প্রফেসর মাসুদা রশিদ চৌধুরীকে।


জাতীয় পার্টির প্রতিষ্ঠাতা প্রেসিডিয়াম সদস্য অ্যাডভোকেট এবিএম ফজলে রশিদ চৌধুরী, সানজিদের বাবা। তিনি জাতীয় পার্টির প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান পল্লীবন্ধু এরশাদকে খুব ভালোবাসতেন। পল্লীবন্ধুও খুব বেশি পছন্দ করতেন এই মানুষটিকে। এরশাদের রাজনৈতিক জীবনের অনেকটা সময় পরামর্শের অন্যতম আশ্রয়স্থল ছিলেন তিনি।


রাউজানের বর্তমান এমপি রেল মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি এবিএম ফজলে করিম চৌধুরী, সানজিদ চৌধুরীর চাচা। জাতীয় সংসদে ওই পরিবারের অনেক সদস্য রয়েছেন, যা বলে শেষ করা যাবে না। পরিবারটিকে খুব কাছে থেকে দেখার সুযোগ হয়েছে। মানুষকে এত বেশি ভালোবাসার বিশেষত্ব ওনাদের কাছ থেকে খুঁজে পেয়েছি। দেশের বিখ্যাত কয়েকটা পরিবারের মধ্যে সানজিদ চৌধুরীর পরিবার একটি। 


ভালোবাসার মানুষ সানজিদ চৌধুরী জাতীয় পার্টির বর্তমান চেয়ারম্যান জিএম কাদেরের বিশেষ উপদেষ্টা হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। ওয়ান ব্যাংকের পরিচালকের দায়িত্বে নিয়োজিত এবং বাংলাদেশের সর্বোচ্চ আদালত সুপ্রিম কোর্টের একজন আইনজীবী তিনি। আজ আর নয়, লিখে শেষ করা যাবে না সানজিদ চৌধুরীর পারিবারিক ইতিহাস। বেঁচে থাকুক মানবতা, বেঁচে থাকুক তরুণ প্রজন্মের আইডল ব্যারিস্টার সানজীদ রশিদ চৌধুরী। সবশেষে তার সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা করছি এবং করোনা ভাইরাস মহামারি থেকে মহান আল্লাহ সবাইকে রক্ষা করুন।

     শুভেচ্ছান্তে 

কাজেমুল হাসান শাহেদ 

সমুদ্র বিজ্ঞান বিভাগ, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়

সদস্য সচিব,জাতীয় ছাত্র সমাজ, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় 

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক, জাতীয় ছাত্রসমাজ, কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটি

আত্রাইয়ের বান্দাইখাড়াতে গণহত্যা দিবস পালন

 আত্রাইয়ের বান্দাইখাড়াতে গণহত্যা দিবস পালন






মোঃ ফিরোজ হোসাইন 

রাজশাহী ব্যুরো


প্রতি বছরের ন্যায় এবারও বান্দাইখাড়াতে গণহত্যা দিবস পালন করল একুশে পরিশদ নওগাঁ ও স্থানীয় এলাকাবাসী। ১৯৭১ সালের আজকের এই দিনে অর্থাৎ ২০শে সেপ্টম্বর ১৯৭১ সাল, পাকিস্তানি মেলেটারি অস্ত্র সহ হানা দিয়ে এলাকায় অনেকে আগে বুঝতে পেরে  প্রান ভয়ে পালিয়ে চলে গেছে আর যারা বুঝতে পারেনি তাদেরকে ঘেরাও করে অস্ত্রের মুখে বান্দাইখাড়া বধ্যভূমি স্থানে এই খানে ডেকে আনে এবং এক সঙ্গে দাঁড় করিয়ে নিরিহ মানুষদের গুলি করে হত্যা করে। এখানে সর্ব প্রথম ডাঃ ইয়াচিন আলী এলাকার একজন ডাক্তার এই যায়গা চিন্তিত করেন এবং কিছু টাকা অনুদান দেন নাম ফলক তৈরি করার জন্য এর পর থেকে বিভিন্ন সময় বিভিন্ন সরকারের এর সহযোগীতায় গড়ে তোলা হয় শহিদ মিনার ও স্মৃতিস্তম্ভ  তাই প্রতি বছর ২০শে সেপ্টেম্বর গণহত্যা দিবস পালন করা হয়। আজ গণহত্যা দিবস পালন কালে এলাকার স্থানীয় মানুষ ও পত্যক্ষ দশ্রী মানুষেরা ও নওগাঁ একুশে পরিশদ এর কমিটি বৃন্দরা বিভিন্ন বিষয় নিয়ে বক্তব্য তুলে ধরেন ও শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পন করেন। এর মাধ্যমে সরকারের কাছে তারা একটায় দাবি তুলে ধরেন সরকারী ভাবে প্রতি বছর ২০শে সেপ্টেম্বর গণহত্যা পালন করা যেন হয়।

আশাশুনির বুধহাটা মৎস্য আড়ৎ সমিতির বর্ধিত সভা

 আশাশুনির বুধহাটা মৎস্য আড়ৎ সমিতির বর্ধিত সভা


 



আহসান উল্লাহ বাবলু সাতক্ষীরা জেলা  প্রতিনিধি ঃ আশাশুনি উপজেলার বুধহাটা মৎস্য আড়ৎ সমিতির বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। রবিবার বিকালে বুধহাটা বাজার মৎস্য আড়ৎ সমিতির আয়োজনে মৎস্য আড়ৎ চত্বরে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। বুধহাটা বাজার মৎস্য আড়ৎ সমিতির সভাপতি মনজুরুল ইসলাম মহিদের সভাপতিত্বে সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন, উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল হক ডাবলু। সাধারন সম্পাদক মহিরউদ্দিনের সঞ্চালনায় এসময় বুধহাটা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক মোহাম্মদ আলী, ইউনিয়ন যুবলীগের সাবেক সভাপতি নুরুজ্জামান জুলু, অসরপ্রাপ্ত সেনা সদস্য শেখ আছাফুর রহমান, ইউনিয়ন শ্রমিকলীগ সভাপতি হাতেম আলী, আওয়ামীলীগ নেতা আবু সাইদ, বুধহাটা ইউনিয়ন যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শামছুজ্জামান রাজুসহ মৎস্য আড়ৎ সমিতির নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। বর্ধিত সভা শেষে একই স্থানে মৎস্য আড়ৎ সমিতির আয়োজনে নৈশভোজের আয়োজন করা হয়।

আশাশুনিতে করোনা নিয়ে মতবিনিময় সভা

 আশাশুনিতে করোনা নিয়ে মতবিনিময় সভা





আহসান উল্লাহ বাবলু সাতক্ষীরা জেলা প্রতিনিধি ঃ আশাশুনিতে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের নিয়ে করোনা বিষয় নিয়ে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। রবিবার সকাল ১০.৪৫ হতে ১২.১৫ পর্যন্ত  এ মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। 


৪৮ নং চাম্পাখালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ১০ জন শিক্ষক এবং  আশাশুনি উপজেলার বিভিন্ন বিদ্যালয়ের ৩য়, ৪র্থ এবং ৫ম শ্রেণির ৯ জন শিক্ষার্থীর সমন্বয়ে করোনাকালীন “আমরা কি করেছি, এখন আমরা কি করছি এবং সামনের দিনগুলোতে আমাদের  কি করা উচিত” ইত্যাদি বিষয়ে মতবিনিময় করা হয়। অংশ গ্রহনকারী শিক্ষার্থীরা টিভিতে নিয়মিত সংসদ পাঠ দেখে এবং বাড়িতে লেখাপড়া করে, নিয়মিত শিক্ষকবৃন্দ তাদের খোঁজ-খবর রাখেন। এমন তথ্য বের হয়ে আসে। অংশগ্রহণকারী শিক্ষার্থী আরিফা খাতুন ৫ম শ্রেণির ছাত্রী, আতাহার সিরাজ ৩য় শ্রেণি, রাকিব হোসেন ৩য়, চঞ্চল মন্ডল -৫ম, কনক বিশ্বাস ৪র্থ, জান্নাতুল নাইমা ৫ম, রাকিব হোসেন ৫ম, রবিউল ইসলাম ৫ম, মরিয়ম ৪র্থ শ্রেণির শিক্ষার্থী। সভায় শিক্ষকবৃন্দ, ইউআরসি ইন্সট্রক্টর ইমান উদ্দিন প্রমুখ অংশ নেন।

আশাশুনিতে বিষপানে গৃহবধুর আত্মহত্যা

 আশাশুনিতে বিষপানে গৃহবধুর আত্মহত্যা




আহসান উল্লাহ বাবলু সাতক্ষীরা জেলা    প্রতিনিধি ঃ আশাশুনিতে বিষপান করে সাবিনা খাতুন নামের এক গৃহবধূ আত্মহত্যা করেছেন। জানাগেছে, উপজেলার আনুলিয়া ইউনিয়নের মির্জাপুর গ্রামের ইমরান সানার স্ত্রী ও খাজরা ইউনিয়নের গদাইপুর গ্রামের কালাম সরদারের মেয়ে সাবিনা খাতুন (২৫) গত বৃহস্পতিবার বৃহস্পতিবার দুপুর দুইটার দিকে স্বামীর বাড়িতে পারিবারিক কলহের জের ধরে বিষপান করেন। এসময় স্বামী তার মুখে বিষের গন্ধ পেয়ে তাৎক্ষণিক গ্রাম্য ডাক্তার কৃষ্ণপদ মন্ডলকে ডেকে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে তার অবস্থার অবনতি হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য অ্যাম্বুলেন্স যোগে তাকে সাতক্ষীরা নিরাময় ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়। সেখানে শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। মৃত্যুকালে তিনি ৮ মাস বয়সী এক পুত্র সন্তান রেখে গেছেন বলে জানাগেছে। এদিকে, তার মৃত্যুর খবর পাওয়ার পর রবিবার সকালে আশাশুনি থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মাদ গোলাম কবির এর নেতৃত্বে এসআই নূরনবী সহ সঙ্গীয় ফোর্স ঘটনাস্থলে পৌঁছে মরদেহটির সুরহতাল রিপোর্ট শেষে ময়না তদন্তের জন্য সোমবার দুপুরে সাতক্ষীরা মর্গে প্রেরণ করেন। এব্যাপারে আশাশুনি থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মাদ গোলাম কবির ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, এ সংক্রান্ত আত্মহত্যায় প্রচারণার অপরাধে থানায় ১৮(৯)২০ নম্বর মামলা রুজু করা হয়েছে।

করোনা প্রাদুর্ভাবে অসহায়দের মাঝে ব্যবসায়ী পুঁজি, উপকরন বিতরণ করলো ঢাকা দক্ষিণ জামায়াত

করোনা প্রাদুর্ভাবে অসহায়দের মাঝে ব্যবসায়ী পুঁজি, উপকরন বিতরণ করলো ঢাকা দক্ষিণ জামায়াত

 



ডা.এম.এ.মান্নান,টাংগাইল জেলা প্রতিনিধি:করোনা ভাইরাস প্রার্দুভাবের কারনে কর্মহারা মানুষের মাঝে নতুন করে ব্যবসা করার জন্য পুঁজি হিসাবে টাকা এবং উপকরণ হিসাবে রিক্সা, ভ্যান বিতরণ করলেন বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী ঢাকা মহানগর দক্ষিণ শাখা।


 আজ রবিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০ খ্রি.সকালে রাজধানীর এক মিলনায়তনে অসহায়দের মাঝে পুঁজি ও বিভিন্ন উপকরণ বিতরণ করেন। 


পুঁজি ও উপকরন প্রদানকালে উপস্হিতি ছিলেন,ঢাকা মহানগর দক্ষিণ জামায়াত আমীর, সাবেক ছাত্রনেতা মো.নুরুল ইসলাম বুলবুল,সেক্রেটারি, সাবেক ছাত্রনেতা ড.শফিকুল ইসলাম মাসুদ,সাবেক তুখোর নির্যাতিত ছাত্রনেতা মো.দেলোয়ার হোসেন সাঈদী(জামায়াত নেতা) প্রমুখ।

নাগরপুরে ক্রীড়া সংঘের উদ্যোগে রাস্তা মেরামত

 নাগরপুরে ক্রীড়া সংঘের উদ্যোগে রাস্তা মেরামত



হাসান সাদী,নাগরপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধিঃ

টাঙ্গাইলের নাগরপুরে সহবতপুর ইউনিয়নের চেচুয়াজানি গ্রামের চেচুয়াজানি ক্রীড়া সংঘের  উদ্যোগে মাইলজানি খালেকের দোকান হইতে চেচুয়াজানি ফকির চাঁন মিয়ার বাড়ি পর্যন্ত  রাস্তাটি মেরামত করা হয়েছে।

জানা গেছে, একটি মাদ্রাসা,প্রতিবন্ধী স্কুল ও প্রাইমারি স্কুলসহ  রাস্তাটি চেচুয়াজানি হতে সরাসরি শলিল আরড়া হয়ে  ভাড়রা ইউনিয়ন এর সাথে যুক্ত হয়েছে। রাস্তাটি মেরামতের খুব প্রয়োজন হয়ে পড়ে। রাস্তাটি চলাচল উপযোগী করার জন্য এই উদ্যোগ নেন চেচুয়াজানি ক্রীড়া সংঘ।

 আজ রবিবার (২০ সেপ্টেম্বর)  সকালে  এই  রাস্তাটি মেরামতের কাজ করা হয়েছে।

রাস্তা মেরামতে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন , উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি ও সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান আনিসুর রহমান আনিস।

প্রাতিষ্ঠানিক ইমেইল পেতে যাচ্ছে জবি শিক্ষার্থীরা

প্রাতিষ্ঠানিক ইমেইল পেতে যাচ্ছে জবি শিক্ষার্থীরা





জবি প্রতিনিধিঃ

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় (জবি) প্রতিষ্ঠার প্রায় ১৫ বছর পর শিক্ষার্থীরা পেতে যাচ্ছেন নিজস্ব প্রাতিষ্ঠানিক ই-মেইল অ্যাকাউন্ট। ফলে গবেষণা ক্ষেত্র, শিক্ষাবৃত্তি ও ই-লার্নিং এ নানা ধরণের অসুবিধা ও ভোগান্তির থেকে রেহাই মিলবে শিক্ষার্থীদের। আগামী দুই সপ্তাহের মধ্যে শিক্ষার্থীদের মিলবে প্রাতিষ্ঠানিক ইমেইল এড্রেস।


রবিবার (২০ সেপ্টেম্বর, ২০২০) প্রতিবেদকের সাথে ফোনালাপে এসব তথ্য জানায় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মীজানুর রহমান।


স্বনামধন্য জার্নাল হতে অনলাইনে গবেষণা প্রবন্ধ পড়া, শিক্ষাবৃত্তির জন্য আবেদন করা, গবেষণা প্রবন্ধ প্রকাশনা, গবেষণা অনুদান প্রাপ্তিসহ বিভিন্ন কাজে প্রয়োজন হয় প্রাতিষ্ঠানিক ই-মেইল এর।


এ ব্যাপারে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের নেটওয়ার্ক ও আইটি দপ্তরের পরিচালক অধ্যাপক ড. উজ্জ্বল কুমার আচার্য্য জানান, শিক্ষার্থীদের প্রাতিষ্ঠানিক ইমেইলের কাজ শুরু করা হয়েছে, ইতিমধ্যে গুগলে আবেদন প্রক্রিয়া চলমান রয়েছে। আগামী ১০/১২ দিন সময় লাগবে কাজ সম্পূর্ণ হয়ে যাবে।


বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মীজানুর রহমান ফোনালাপে প্রতিবেদককে জানান, দ্রুতই সবাই প্রাতিষ্ঠানিক ইমেইল এড্রেস পাবে, অলরেডি আইটি ডিরেক্টরকে এ ব্যাপারে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে, কাজ শুরু হয়ে গিয়েছে।

নাগরপুরে আঁখ ক্ষেতে মিললো অজ্ঞাত মহিলার লাশ

নাগরপুরে আঁখ ক্ষেতে মিললো অজ্ঞাত মহিলার লাশ



হাসান সাদী, নাগরপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধিঃটাঙ্গাইলের নাগরপুরে আঁখ ক্ষেত থেকে অজ্ঞাত এক মহিলার (৩০) লাশ উদ্ধার করেছে  নাগরপুর থানা পুলিশ। রবিবার (২০ সেপ্টেম্বর) দুপুরে উপজেলার দপ্তিয়র ইউনিয়নের পাঁচ আরড়া গ্রামের চান্দু বেপারীর আঁখ ক্ষেত থেকে সেলোয়ার কামিজ পরিহিত অজ্ঞাত মহিলার লাশ উদ্ধার করা হয়। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন নাগরপুর থানার ওসি আলম চাঁদ। 



পুলিশ জানায়, পাঁচ আরড়া গ্রামের আঁখ চাষী চান্দু বেপারী তার আঁখ ক্ষেতের আঁখ কাটতে গিয়ে আঁখ দিয়ে মাথা ও মুখ পেঁচানো লাশ দেখতে পেয়ে দৌড়ে বাড়িতে এসে অজ্ঞান হয়ে পড়ে। পরে পরিবার ও এলাকাবাসী দ্রুত নাগরপুর থানায় বিষয়টি জানালে নাগরপুর থানা পুলিশের একটি চৌকস দল ঘটনা স্থলে পৌছে লাশটি উদ্ধার করেন। লাশ আনুমানিক তিন-চার দিনের আগের হওয়ায় চেহারা বিকৃত হয়ে গেছে। নিহতের পরনে ছিল লাল রংয়ের প্রিন্টের সেলোয়ার কামিজ। লাশের সুরত হাল রিপোর্ট প্রস্তুত করে মহিলার মৃত্যুর সঠিক কারন জানতে নাগরপুর থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা দায়ের করে লাশটি ময়নাতদন্তের জন্য টাঙ্গাইল মর্গে প্রেরনের প্রস্তুতি চলছে।


নাগরপুর থানার ওসি আলম চাঁদ বলেন, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে মহিলাকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে। নিহতের পরিচয় এখনও পাওয়া যায়নি। পরিচয় নিশ্চিতে কাজ চলছে। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে পাঠানোর প্রস্তুতি চলছে।

নাগরপুরে মুক্তিযুদ্ধ ও বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘর উদ্বোধন

নাগরপুরে মুক্তিযুদ্ধ ও বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘর উদ্বোধন




নাগরপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধিঃতরুন ও আগামী প্রজন্মের কাছে মুক্তিযুদ্ধ ও বঙ্গবন্ধুর সঠিক ইতিহাস তুলে ধরতে টাঙ্গাইলের নাগরপুরে মুক্তিযুদ্ধ ও বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘর উদ্বোধন করা হয়েছে। রবিবার (২০ সেপ্টেম্বর) সকালে উপজেলা প্রাঙ্গনে অবস্থিত স্বাধীনতা ভবনকে মুক্তিযুদ্ধ ও বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘর হিসেবে উদ্বোধন করেন স্থানীয় সাংসদ আহসানুল ইসলাম টিটু।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সৈয়দ ফয়েজুল ইসলামের সভাপতিত্বে ও সহকারি শিক্ষা কর্মকর্তা জিএম ফুয়াদের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে সাংসদ টিটু বলেন, দেশে ৭৫ পরবর্তী সময়ে মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস একটি গোষ্ঠি বিকৃত করে ফেলেছিল। সেই গোষ্ঠীই আবার মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস থেকে বঙ্গবন্ধুকে নিশ্চিহ্ন করে দেওয়ার অপচেষ্টায় লিপ্ত ছিল। কিন্তু এখন যুগ পাল্টিয়েছে নতুন প্রজন্মকে মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস জানাতে ও মুক্তিযুদ্ধে বঙ্গবন্ধুর ভূমিকা তুলে ধরতে বর্তমান সরকারের পাশাপাশি প্রবীণ মুক্তিযোদ্ধারা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে। তার আলোকে নাগরপুরে উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে ও মুক্তিযোদ্ধাদের সহযোগিতায় আজ থেকে নাগরপুরে যাত্রা শুরু করা এ মুক্তিযুদ্ধ ও বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘর উপজেলার তরুন প্রজন্মকে মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস জানাতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার সুজায়েত হোসেন বলেন, আমরা উপজেলার মুক্তিযোদ্ধারা দীর্ঘদিন যাবৎ চিন্তা করছিলাম কিভাবে আমরা আমাদের নতুন প্রজন্মের কাছে মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস তুলে ধরতে পারি। আজ এখানে  মুক্তিযুদ্ধ ও বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘর স্থাপনের মধ্য দিয়ে আমাদের দুশ্চিন্তা কিছুটা লাঘব হয়েছে। আমরা বিশ্বাস করি এ জাদুঘরের মাধ্যমে আমাদের নতুন প্রজন্ম মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস জানতে পারবে ও বঙ্গবন্ধুকে জানতে পারবে।

অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মো.হুমায়ুন কবীর, বীরমুক্তিযোদ্ধা রিয়াজ উদ্দিন তালুকদার, মো.ফজলুল হক, এডভোকেট দাউদুল ইসলাম দাউদ, শম্ভুনাথ সাহা, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সন্তান সংসদ কমান্ডের উপদেষ্টা খন্দকার আছাব মাহমুদ প্রমূখ।

আটটি গ্যালারিতে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসের স্থিরচিত্র নিয়ে আজ থেকে যাত্রা শুরু করল নাগরপুরের মুক্তিযুদ্ধ ও বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘরটি।

কিশোরগঞ্জে যুবদলের সাধারণ সম্পাদক গ্রেনেড বাবু গ্রেফতার

 কিশোরগঞ্জে যুবদলের সাধারণ সম্পাদক গ্রেনেড বাবু গ্রেফতার




মোঃ লাতিফুল আজম

কিশোরগঞ্জ(নীলফামারী)সংবাদদাতা



নীলফামারীর কিশোরগঞ্জ উপজেলার যুবদলের সাবেক সাধারন সম্পাদক হোসেন সহীদ সোহারাওয়ার্দি ওরফে গ্রেনেড বাবু (৪৮) গ্রেফতার হয়েছে। রবিবার বেলা ৩টার দিকে তাকে থানা পুলিশ গ্রেফতার করে। তার বিরুদ্ধে উপজেলার সরকারী কুষ্ঠ হাসপাতালের জমি অবৈধভাবে দখল করে ভবন নির্মানের ঘটনায় সংশ্লিষ্ট থানায় মামলা দায়ের হয়েছে।

উপজেলা হাসপাতালের প.প.কর্মকর্তা ডাঃ আবু সফি মাহমুদ জানান, সহীদ সোহারাওয়ার্দি ওরফে গ্রেনেড বাবু  অবৈধভাবে রবিবার সকাল থেকে উপজেলা সরকারী কুষ্ঠ হাসপাতালের জায়গা দখল করে সেখানে পাকা ঘর তোলা শুরু করে। খবর পেয়ে সেখানে আমি সহ হাসপাতালের স্টাফরা গিয়ে তাকে বাধা দেই। তিনি এ সময় নির্মান কাজ বন্ধ রাখেন। এক ঘন্টা পর তিনি পুনরায় সেখানে পাকা ঘর তুলতে থাকেন। তাকে আবারো গিয়ে নিষেধ করা হলে তিনি কোন বাধা না মেনে নির্মান কাজ চালিয়ে যেতে থাকেন। ফলে বাধ্য হয়ে দুপুরে  থানায় মামলা দায়ের করা হয়।

এদিকে এলাকাবাসী জানায়, এর আগেও গ্রেনেডবাবু বাজারের গরুহাটির সরকারী জায়গা অবৈধভাবে দখল করে সেখানে জুয়ার আড্ডা পরিচালনা করতো। ওই ঘটনায় তার বিরুদ্ধে মামলাটি চলছে আদালতে বিচারাধীন ।

এ ছাড়া গত জেলা পরিষদ নির্বাচনে গ্রেনেডবাবু ১৫ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য পদের প্রার্থীর ছিল। নির্বাচনের ভোটে তিনি হেরে গেলে বেশ কিছু ইউপি চেয়ারম্যানকে লাঞ্চিত করেছিল।

কিশোরগঞ্জ থানার ওসি আব্দুল আউয়াল জানান, উপজেলা সরকারী কুষ্ঠ হাসপাতালের জায়গা অবৈধভাবে দখল করে অবৈধভাবে সেখানে ভবন নির্মানের ঘটনার মামলায়  হোসেন সহীদ সোহারাওয়ার্দি ওরফে গ্রেনেড বাবুকে গ্রেফতার করা হয় বেলা ৩টায়। এরপর তাকে আদালতের মাধ্যমে জেলা কারাগারে প্রেরন করা হয়েছে।

মাধবপুরে ৫ বছরের শিশুকে জমি নিয়ে বিরোধে হত্যার অভিযোগ

মাধবপুরে ৫ বছরের শিশুকে জমি নিয়ে বিরোধে হত্যার অভিযোগ




লিটন পাঠান, হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি:হবিগঞ্জের মাধবপুরে আরমান মিয়া (৫) নামে এক শিশুর রক্তাক্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শনিবার(১৯ সেপ্টেম্বর) দুপুরে মৃত শিশুটির মরদেহ ময়না তদন্তের জন্য হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হয়। শিশু আরমান মিয়া উপজেলার বড়ক গ্রামের মনির হোসেনের পুত্র। যদিও পরিবারের পক্ষ থেকে দাবী করা হচ্ছে জমি সংক্রান্ত বিরোধকে কেন্দ্র করে ওই শিশুটিকে হত্যার ঝোপঝাড়ে ফেলে রেখেছে দুর্বৃত্তরা।


তবে পুলিশ বলছে প্রাথমিক ভাবে মনে হচ্ছে পানিতে পড়েই মৃত্যু হয়েছে শিশু আরমানের। নিহত শিশুর পিতা মনির হোসেন জানান তার সৎ শশুড় ছোরাব আলী’র সাথে দীর্ঘদিন যাবত জমি সংক্রান্ত বিরোধ চলে আসছে। এরই জেরধরে বাড়িতে কোন লোকজন না থাকার সুবাধে ছোয়াব আলীসহ সহযোগীরা তার ছেলে হত্যা করে বাড়ির 

পার্শ্ববর্তী একটি পুকুর পাড়ের ঝোপঝাড়ে ফেলে রেখে যায় পরে অনেক খুজাখুজির পর ঝোপঝাড় থেকে শিশুর আরমানের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। 


মাধবপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইকবাল হোসেন জানান প্রাথমিক ভাবে ধারণা করা হচ্ছে পুকুরের পানিতে ডুবে শিশু আরমানের মৃত্যু হয়েছে। তবে পরিবারের পক্ষ থেকে অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে এছাড়াও ময়না তদন্তের রিপোর্ট পেলে মৃত্যুর সঠিক কারণ জানা যাবে।

মাধবপুরে অবৈধ ভাবে দেবোত্তর সম্পত্তি বিক্রির অভিযোগ

 মাধবপুরে অবৈধ ভাবে দেবোত্তর সম্পত্তি বিক্রির অভিযোগ


লিটন পাঠান, হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি:হবিগঞ্জের মাধবপুরে এক প্রভাবশালীর বিরুদ্ধে অবৈধ ভাবে দেবোত্তর সম্পত্তি বিক্রি করে দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে লিখিত অভিযোগ সুত্রে জানা যায়, বুল্লা গ্রামের বাসন্তি দেবীর পুজা ও মন্দিরের জায়গা জমি রক্ষনা বেক্ষন করার জন্য ওই গ্রামের মৃত আনন্দ মোহন রায়ের ছেলে অমরেন্দ্র রায় কে সেবায়েত করা হয়।সম্প্রতি অমরেন্দ্র রায় বাসন্তী দেবীর নামে দেবোত্তর সম্পত্তি থেকে ৩১ শতক ভুমি একই গ্রামের আবু শ্যাম ও একই গ্রামের ধনু মিয়ার নিকট ৫৫ শতক ভুমি বিক্রি করেন।


অমরেন্দ্র রায় সেবায়েতের সুযোগ নিয়ে বাসন্তী দেবীর বিগ্রহের দেবোত্তর সম্পত্তি অবৈধভাবে বিক্রি করে টাকা আত্মসাত করেন। এ ব্যাপারে তার ছোট ভাই মৃত প্রেমতোষ রায়ের ছেলে পরিমল রায় হবিগঞ্জ জেলা প্রশাসকের নিকট গত ১৬ সেপ্টেম্বর একটি লিখিত অভিযোগ করেন। যার অনুলিপি মাধবপুর উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা সহকারী কমিশনার (ভুমি) কে দেওয়া হয় এ বিষয়ে অমরেন্দ্র রায়ের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি।


অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন নাসিরনগরের হামলার সময় বুল্লার বাসন্তি মন্দিরে হামলা ও অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটে মন্দির টি সংস্কার করার জন্য জায়গা বিক্রি করা হচ্ছে। মাধবপুর উপজেলার সহকারী কমিশনার(ভুমি) আয়েশা আক্তার জানান, ডিসি স্যারের কাছে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন যার অনুলিপি আমাকে দেওয়া হয়েছে স্যার ব্যবস্থা নিবার অনুমতি দিলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

দিনাজপুর ঘোড়াঘাট ইউএনও ও তার বাবার হত্যার চেষ্টা দোষ স্বীকার করে রবিউলের জবানবন্দি

 দিনাজপুর ঘোড়াঘাট ইউএনও  ও তার বাবার হত্যার চেষ্টা দোষ স্বীকার করে রবিউলের জবানবন্দি




মামুনুর রশিদ, দিনাজপুর প্রতিনিধি: দিনাজপুরে ঘোড়াঘাট ইউএন ওয়াহেদা খানম ও তার বাবা ওমর আলী শেখ এর উপর হত্যার চেস্টা মামলায় ৯ দিনের  রিমান্ড শেষে রবিবার সকাল ১০টায় দিনাজপুর জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রিট আদালতে  রবিউল কে তুলা হয়।  রবিউল ইসলাম আদালতে দোষ স্বীকার করে জবানবন্দি দিয়েছে। দিনাজপুর সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত-৭ এর বিচারক ইসমাইল হোসেনের আদালতে স্বীকারোক্তি মূলক জবানবন্দি দেয়  রবিউল  ইসলাম। এর আগে রবিউল ইসলাম কে দুই দফায় ৬ দিন ও ৩দিন করে রিমান্ডে নেয়া হয়। আজ ৩ দিনের রিমান্ড শেষে আদালতে নেয়া হলে জবানবন্দি দেয় সে। 


মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ডিবি ওসি ইমাম জাফর জানান,রবিউল তার দোষ স্বীকার করে জবানবন্দি দিয়েছে দোষ স্বীকারের এক পর্যায়ে বিজ্ঞ আদালতে তার স্বীকারক্তি মুলক জবানবন্দি লিখার জন্য। এর পর আদালত থেকে  রবিউল কে  জেল হাজতে পাঠানো হয়।

এই মামলায় অপর আসামী আসাদুল হক, নবিরুল ইসলাম,সান্ট কুমারু ও পলাশ জেল হাজতে রয়েছে। আসাদুল,নবিরুল ও সান্টু কে ৭ দিনের  করে রিমান্ড নেয়া হয়েছিলো। রবিউল কে হাজির করার কারণে আদালত পাড়ায়  নিরাপত্তা ব্যবস্থা  জোরদার ছিলো। 


উল্লেখ্য, গত ২রা সেপ্টেম্বর রাত আড়াইটায় ইউএনওর বাস ভবনে ভেন্টিলেটার দিয়ে দুবৃর্ত্তরা প্রবেশ করে ইউএনও এবং তার বাবার উপর হামলা চালায়।

দিনাজপুরে শাহরিয়ারের বিচারের দাবীতে মানববন্ধন

দিনাজপুরে শাহরিয়ারের বিচারের দাবীতে মানববন্ধন




মামুনুর রশিদ,দিনাজপুর প্রতিনিধি ॥ দিনাজপুর গাউসুল আজম এমিতখানার ১০০ কোটি টাকার লুন্ঠনকারী ভূমিদুস্য শাহরিয়ার এর বিচারের দাবীতে বিশাল মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে এলাকার বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষসহ দিনাজপুরের আপামর মানুষ অংশগ্রহণ করেন। ২০ সেপ্টেম্বর সকালে শেখ জাহাঙ্গীর কবরস্থান সংলগ্ন এলাকায় এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। 

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, দিনাজপুর শহরের বালুবাড়ী এলকার গাউসুল আজম এমিতখানার শত কোটি টাকার সম্পত্তি লুন্ঠনকারী গাউসে শাহরিয়ার বিক্রিয়র মহোৎসব শুরু করেছেন। জমিদাতার প্রাথমিক অবস্থায় গড়ে তোলা এমিতখানাটি গুড়িয়ে দিয়ে ঐ সম্পত্তিগুলো পর্যায়ক্রমে অবৈধভাবে বিক্রি অব্যাহত রেখেছেন। এতিমের এ সম্পত্তির প্রায় ২০০ শতক জমি ইতোমধ্যে তিনি বিক্রি করে দিয়েছেন।

বক্তারা আরও বলেন, শেখপুরা মৌজার ৩নং জেএল ২২২/৫২ খতিয়ানভূক্ত ৬৬১ দাগে ৭ দশমিক ৫ শতক, ৬৬০ দাগে ২৮ শতক (ডাঙ্গা) সহ মোট ৭ দশমিক ৩৩ শতক সম্পত্তি বালুবাড়ী এলাকার মৃত দলিল উদ্দীন আহমেদের পুত্র মৃত গোলাম মোস্তফা ১৯৯৪ সালের জানুয়ারী মাসে গাওসুল আজম এতিমখানার নামে দানস্বত্ব দলিল মূলে রেজিষ্ট্রি করে দেন। পরবর্তীতে গাওসে শাহরিয়ার উল্লিখিত সম্পত্তি আত্মসাতের অসৎ উদ্দেশ্যে নানান অপকৌশল ও সন্ত্রাসী কার্যক্রমে লিপ্ত হয়। এক পর্যায়ে শহরের ইসলামী ব্যাংক, সোনালী ব্যাংক সহ বিভিন্ন পর্যায়ের ৮/৯ জন কর্মকর্তার নিকট প্রায় ২০০ শতক জমি বিক্রি করে ২০ কোটি টাকা হাতিয়ে নেয়। শাহরিয়ার ২০ কোটি টাকা আত্মাসাৎ করলেও এর সাথে হযোগী রয়েছেন জমি ক্রেতারা। ইসলামী ব্যাংক, সোনালী ব্যাংকের ওই কর্মকর্তারা এতিমের সম্পদ ক্রয় করে আট্টলিকা তৈরী করেছেন। কোন নিয়মনীতির তোয়াক্কা না করে ওই ব্যাংক কর্মকর্তারা শুধু টাকার জোরে এমনটা করেছেন। এসব অসাধু কর্মকর্তাদের মধ্যে রয়েছেন ইসলামী ব্যাংকের আসাদুল, কিবরিয়া, মোহাম্মদ আলী, আব্দুল জলিল, আমিনুল ইসলাম, ওয়ামিক হাসান চৌধুরী, সোনালী ব্যাংকের তাহমিদুর রহমান সহ আরও অনেকে। এরা সেখানে বিশাল বিশাল অট্টালিকা নির্মাণ করেছেন। পাশাপাশি ভূমিদস্যু শাহরিয়ার সুইমিং পুল, ডিজে পার্ক, পার্টি সেন্টার, নাইট ক্লাব সহ আলিশান একটি ৬ তলা বিশিষ্ট ভবন নির্মাণ করেন। শাহরিয়ারের বিরুদ্ধে একাধিক নারী কেলেঙ্কারীর অভিযোগও রয়েছে। এছাড়া তার নির্মিত সুইমিং পুলের পানিতে গড়িয়ে পড়ে শেখ জাহাঙ্গীর গোরস্থানে। এ বিষয়ে এলাকাবাসীর অভিযোগের প্রেক্ষিতে সম্প্রতি নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ২০ হাজার টাকা জরিমানা করেন। 

বক্তারা বলেন, এভাবে একজন দিনের পর দিন ধরাকে সরাঞ্জান করতে পারেন না। এ ব্যাপারে অবিলম্বে স্থানীয় প্রশাসন, ভূমি মন্ত্রণালয়, দুদকসহ সংশ্লিষ্ট প্রশাসনকে জরুরী হস্তক্ষেপ করতে হবে। মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন, গাওসুল আজম এতিমখানা পরিচালনা কমিটির সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আমির হোসেন, সহ-সভাপতি ও পৌর কাউন্সিলর কাজী আকবর হোসেন অরেঞ্জ, সাধারন সম্পাদক বিশিষ্ট ব্যবসায়ী লিয়ন চৌধুরী, সদস্য সৈয়দ মনসুরুল হোসেন ডাবলু প্রমুখ।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মানবিক পরিকল্পনায় চিকিৎসাসেবা কর্মীদের করোনা প্রতিরোধে উদ্ধুদ্ধ করেছে হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মানবিক পরিকল্পনায় চিকিৎসাসেবা  কর্মীদের করোনা প্রতিরোধে উদ্ধুদ্ধ করেছে  হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি



 মামুনুর রশিদ,দিনাজপুর প্রতিনিধি॥ জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মানবিক পরিকল্পনায় চিকিৎসাসেবা কর্মীদের করোনা প্রতিরোধে উদ্ধুদ্ধ করেছে উল্লেখ করে বলেন, যে কোন দুর্যোগ মোকাবেলায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আওয়ামীলীগ মাঠে থেকে প্রতিরোধ করেছে। করোনা মহামারিতেও  করোনা রোগীসহ সকল ধরনের রোগীদের চিকিৎসা সেবা সর্বোচ্চ দেয়া হয়েছে। চিকিৎসা সেবায় এগিয়ে গেছে বাংলাদেশ। অন্যান্য দেশের তুলনায় বাংলাদেশে করোনা ভাইরাস সংক্রমের সংখ্যা অনেক কম।  তাই এখনো সকলকে সচেতন হয়ে চলাফেরা করতে হবে। তিনি আরও বলেন, শুধু চিকিৎসাসেবায় নয় করোনার এই মহামারিতেও দেশের যে কোন স্তুরের উন্নয়ন এগিয়ে গেছে প্রধানমন্ত্রী। শিক্ষা, স্বাস্থ্য, যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়ন হয়েছে। ডিজিটাল পদ্ধতিতে ক্লাস নেয়া হয়েছে শিক্ষার্থীদের। পরীক্ষাও হয়েছে। শিক্ষার্থীদের উৎসাহ যোগাতে অটোপাশ দেয়া হয়েছে। যাতে তারা ভেঙ্গে না পড়ে। জীবন মান উন্নত করেছে। করোনা অভাব বুজতে পারেনি কেউ। একমাত্র আওয়ামীলীগ সরকার এ দেশের মানুষের জন্য কাজ করে। হুইপ করোনা রোগীদের দ্রুত সুস্থ্যতা ও মৃত ব্যক্তিদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করে মহান আল্লাহতালার কাছে করোনার মুক্তি জন্য দোয়া প্রার্থনা করেন। তিনি আরও বলেন, একমাত্র শেখ হাসিনা সরকারের জন্যই সকল ধরনের ভাতা প্রদান করা হচ্ছে। যা কোন সরকারের আমলেই হয়নি। দিনাজপুর সদর উপজেলার সকল নারীকে সকল ধরনের সুযোগ সুবিধার আওতায় নিয়ে আসা হবে। 

২০ সেপ্টেম্বর রবিবার হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি দিনাজপুর সদর উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে উপজেলা প্রশাসন, সদর ও দিনাজপুর মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের উপ-পরিচালকের কার্যালয় আয়োজিত দুঃস্থদের মাঝে ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয় হতে প্রাপ্ত ২১ জনকে ১৫ হাজার করে ৩ লাখ ১৫ হজার টাকার আর্থিক সহায়তার চেক বিতরন ও মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তর দিনাজপুর কর্তৃক বাস্তবায়িত দরিদ্র মা’র জন্য মাতৃত্বকাল ভাতা প্রদান কর্মসুচীর আওতায় স্বাস্থ্যসচেতনতা জোরদার করণে প্রশিক্ষণ কর্মশালার উদ্বোধন করেন হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি। দিনাজপুর সদর উপজেলার নির্বাহী অফিসার এস এইচ এম মাগফুরুল হাসান আব্বাসীর সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন দিনাজপুর সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ ইমদাদ সরকার, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান জেসমিন আরা জো¯œা, শহর আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক খালেকুজ্জামান রাজু, ২নং সুন্দরবন ইউনিয়নের চেয়ারম্যান অসোক কুমার রায় প্রমুখ। সঞ্চালনে ছিলেন ডে-কেয়ার অফিসার রেজভীন সারমিনাজ ইসলাম।

রাজাপুরে মাছের পোনা অবমুক্ত, ভার্চুয়াল মাধ্যমে উদ্বোধন করলেন এমপি বিএইচ হারুন

 রাজাপুরে মাছের পোনা অবমুক্ত, ভার্চুয়াল মাধ্যমে উদ্বোধন করলেন এমপি বিএইচ হারুন




এইচ এম জহিরুল ইসলাম মারুফ।

ঝালকাঠি জেলা প্রতিনিধি:-


ঝালকাঠির রাজাপুরে চলতি অর্থ বছরে রাজস্ব খাতের আওতায় বর্ষাপ্লাবিত ধানক্ষেত, প্লাবনভূমি প্রতিষ্ঠানিক পুকুর ও উন্মুক্ত জলাশয়ে মাছের পোনা অবমুক্ত করা হয়েছে।

অনলাইনের মাধ্যমে পোনা মাছ অবমুক্ত করণ উদ্বোধন করেন ঝালকাঠি-১ ( রাজাপুর-কাঠালিয়া) আসনের সাংসদ আলহাজ বজলুল হক হারুন।



এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ মনিরউজ্জামান, ইউএনও সোহাগ হাওলাদার, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আফরোজা আক্তার লাইজু, সহকারী কমিশনার (ভূমি) অনুজা মন্ডল, সাবেক সহকারী কমিশনার (ভূমি) ইমরান শাহরিয়ার, সিনিয়র উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মোঃ আবুল বাশার, উপজেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা সাজেদুল ইসলাম, উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা মোঃ মোজাম্মেল হোসেন ও স্থানীয় এমপি মহোদয়ের অ্যাম্বাসেডর ও উপজেলা ছাত্রলীগের সহ সভাপতি মোঃ মাহমুদুল হাসান মাহমুদ প্রমূখ।

পটিয়া উপজেলায় যুব রেড ক্রিসেন্ট,চট্টগ্রামের মৌলিক ও প্রাথমিক চিকিৎসা প্রশিক্ষণ সম্পন্ন

পটিয়া উপজেলায় যুব রেড ক্রিসেন্ট,চট্টগ্রামের মৌলিক ও প্রাথমিক চিকিৎসা প্রশিক্ষণ সম্পন্ন




রিয়াজুল করিম রিজভী

চট্টগ্রাম ব্যুরো প্রধান


গত ১৬ সেপ্টেম্বর বাংলাদেশ রেড ক্ৰিসেন্ট সোসাইটি চট্টগ্রাম জেলা ইউনিটের সার্বিক সহযোগিতায়  যুব রেড ক্ৰিসেন্ট,চট্টগ্রামের আয়োজনে পটিয়া উপজেলা মিলনায়তন কক্ষে পটিয়া উপজেলার স্বেচ্ছাসেবকদের দক্ষতা উন্নয়নের অংশ হিসেবে তিন দিন ব্যাপি রেড ক্ৰস রেড ক্ৰিসেন্ট মৌলিক ও প্রাথমিক চিকিৎসা প্রশিক্ষণ সম্পন্ন হয়। গত ১৬/০৯/২০২০ইং রোজ বুধবার প্রশিক্ষণের উদ্ভোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন পটিয়া উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা ফয়সাল আহমেদ এবং ১৮/০৯/২০২০ইং রোজ শুক্রবার প্রশিক্ষণের সমাপনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন পটিয়া উপজেলা পরিষদ এর চেয়ারম্যান মোতাহেরুল ইসলাম চৌধুরী।

তিন দিন ব্যাপি যে সকল প্রশিক্ষকবৃন্দ সেশন পরিচালনা করেন যুব রেড ক্রিসেন্ট,চট্টগ্রামের প্রশিক্ষণ বিভাগীয় প্রধান মোঃ মিজানুর রশিদ রাকিব,প্রশিক্ষণ বিভাগীয় উপ-প্রধান তানভীর ইসলাম চৌধুরী মাহিন,জান্নাতুল নাঈম বৃষ্টি,মোঃ মফিজুর রহমান মাহফুজ,সাংগঠনিক বিভাগীয় উপ-প্রধান মোঃসুমন,হাবিবুর রহমান,দপ্তর বিভাগীয় উপ-প্রধান আজমিআরা খানম, এ প্রশিক্ষণ আয়োজনে সহযোগিতা করেন পঠিয়া উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক নয়ন শর্মা। উক্ত প্রশিক্ষণে পটিয়া উপজেলার  ২৬ জন স্বেচ্ছাসেবক অংশগ্রহণ করে।

মোংলার সোনাইলতলা থেকে হরিনের মাংসসহ আটক -১

 মোংলার সোনাইলতলা থেকে হরিনের মাংসসহ আটক -১




মোঃ এরশাদ হোসেন রনি, মোংলা   

মোংলা উপজেলার সোনাইলতলা ইউনিয়নের  খেয়াঘাট এলাকা থেকে হরিনের মাংসসহ একজন কে আটক করেছে মোংলা থানা  পুলিশ।

গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শনিবার গভীররাতে মোংলা থানার এস আই লিটন সংর্গীয় ফোর্স নিয়ে  অভিযান চালিয়ে লুকিয়ে রাখা একটি পাতিলে ভর্তি হরিনের মাংস জব্দ করে। এসময় ওই মাংস রাখার দায়ে গোপালপাল(৪০) কে আটক করে পুলিশ। আটক গোপাল  পটুয়াখালী জেলার গোয়ালিয়া উপজেলার সুকলাল পাল এর সন্তান।


 এবিষয়ে মোংলা থানায় একটি মামলা দায়ের শেষে আজ রবিবার গোপাল কে বাগেরহাট আদালতে পাঠানো হবে বলে জানিয়েছেন মোংলা থানার সেকেন্ড অফিসার মোঃ জাহাঙ্গীর আলম।##

নিয়োগ নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের দাবি নোবিপ্রবি শিক্ষক,কর্মকর্তা-কর্মচারীদের

 নিয়োগ নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের দাবি নোবিপ্রবি  শিক্ষক,কর্মকর্তা-কর্মচারীদের

নোবিপ্রবি প্রতিনিধি 

গেল বছরের এপ্রিলের দিকে নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (নোবিপ্রবি) তৎকালীন উপাচার্য অধ্যাপক ড. এম অহিদুজ্জামানের বিরুদ্ধে অনিয়ম করে শিক্ষক-কর্মকর্তা নিয়োগের অভিযোগ ওঠলে বিশ্ববিদ্যালয়টির সব ধরণের নিয়োগ কার্যক্রম স্থগিত করে দেয় শিক্ষা মন্ত্রণালয়। কিন্তু ১৬ মাস পেরিয়ে গেলেও নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করেনি শিক্ষা মন্ত্রণালয়। শিক্ষা মন্ত্রণালয় কর্তৃক আরোপিত ওই নিয়োগ নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের দাবিতে মানববন্ধন করেছে শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা। 


রোববার (২০ সেপ্টেম্বর) সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় শহিদ মিনার প্রাঙ্গণে এ মানবন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। নোবিপ্রবি শিক্ষক সমিতি, অফিসার সমিতি ও কর্মচারী নেতৃবৃন্দ এ মানববন্ধনের  আয়োজন করে। 


নোবিপ্রবি শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মো. মজনুর রহমানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন শিক্ষক সমিতির সভাপতি ড. নেওয়াজ মোহাম্মদ বাহাদুর। অস্থায়ী শিক্ষকদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন রায়হান আহমেদ রিমন ও সাদিয়া আফরোজ, কর্মকর্তাদের মাঝে বক্তব্য রাখেন অফিসার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি সাখাওয়াত হোসেন, সাধারণ সম্পাদক মেজবাহ উদ্দিন এবং কর্মচারীর মধ্যে বক্তব্য রাখেন টিটু চন্দ্র দাস।


মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, শিক্ষা মন্ত্রণালয় কর্তৃক নিষেধাজ্ঞার কারণে দীর্ঘদিন ধরে বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারী নিয়োগ প্রক্রিয়া বন্ধ রয়েছে। শিক্ষাছুটির বিপরীতে, অস্থায়ী ও চুক্তিভিত্তিক পদে নিয়োগপ্রাপ্ত শিক্ষকদের স্থায়ীকরণ প্রক্রিয়াও বাঁধাগ্রস্থ হচ্ছে। তাদের পরবর্তী পদে পদোন্নতির সময়ও প্রায় ১ বছর অতিক্রান্ত হয়েছে। এদিকে অস্থায়ী ও চুক্তিভিত্তিক কর্মকর্তা-কর্মচারী ও মাস্টার রোল কর্মচারীদের চাকরি স্থায়ী হচ্ছে না। এমন পরিস্থিতিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যাকাডেমিক ও প্রশাসনিক কর্মকাণ্ডে স্থবিরতা বিরাজ করছে। তাই বক্তারা নোবিপ্রবিতে সব ধরনের নিয়োগ নিষেধাজ্ঞা দ্রুত সময়ের মধ্যে প্রত্যাহারের জোর দাবি জানান।  


বক্তারা আরো বলেন, বর্তমান উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. দিদার-উল-আলম নোবিপ্রবিতে যোগদানের পর হতে বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ ঐক্যবদ্ধভাবে উন্নয়ন কর্মকাণ্ড তথা অ্যাকাডেমিক ও প্রশাসনিক কার্যক্রমে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। করোনা মহামারীতেও জীবনের ঝুঁকি নিয়ে কভিড-১৯ শনাক্তকরণ ল্যাব পরিচালনাসহ বিশ্ববিদ্যালয়ে স্বাভাবিক কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছেন।  কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয়ের অনেকগুলো বিভাগেই পর্যাপ্ত শিক্ষক নেই, মাত্র ২ জন শিক্ষক দিয়ে দুটি শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থীদের পাঠদান কার্যক্রম চলছে। ফলে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের গবেষণা ও শিক্ষা কার্যক্রম চরমভাবে ব্যহত হচ্ছে। এমতাবস্থায় শিক্ষামন্ত্রণালয়, বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন এবং বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ অচিরেই যেন এ নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারে উদ্যোগী হন, মানববন্ধনে এমনটাই দাবি করেন নোবিপ্রবি শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারী নেতৃবৃন্দ।

ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানির পর হিলি স্থলবন্দরে পেঁয়াজের দাম কমেছে

 ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানির পর হিলি স্থলবন্দরে পেঁয়াজের দাম কমেছে


কৌশিক চৌধুরী,হিলি প্রতিনিধিঃ

ভরত হতে এসেছে প্রকার ভেদে এসব পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ২৫ থেকে ৪০টাকা প্রতি কেজি দরে। অতিরিক্ত পঁচে যাওয়া পেঁয়াজের প্রতি ৫০ কেজির বস্তা বিক্রি হচ্ছে ৫০ থেকে ১০০ টাকায়। 


আজ রোববার হিলি স্থলবন্দর দিয়ে ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানি বন্ধ রয়েছে তবে অন্যান্য মালামাল আমদানি স্বাভাবিক রয়েছে। আগামীকাল সোমবার হিলি স্থলবন্দর দিয়ে ১৪ ও ১৫ তারিখের রফতানি অনুমতি পাওয়া পেঁয়াজ পুনরায় দেশে আমদানি হতে পারে বলে ধারনা করছেন বন্দরের ব্যবসায়ীরা।


হিলি স্থলবন্দরের পেঁয়াজ আমদানি কারক শহিদুল ইসলাম জানান, গত ১৩ তারিখে রফতানির অনুমতি পাওয়া পেঁয়াজ গুলো গতকাল শনিবার হিলি স্থলবন্দর দিয়ে প্রবেশ করেছে। এদিন ভারত থেকে ১১টি ট্রাকে মোট ২৪৬ মেট্রিক টন পেঁয়াজ আমদানি হয়েছে এই বন্দর দিয়ে।


৫ দিন ধরে পেঁয়াজ গুলো সীমান্তের ওপারে আটকা পরে থাকায় এবং দেশে প্রবেশ করতে না পারায় অতিমাত্রার গরম ও বৃস্টিতে ভিজে পেঁয়াজ গুলো পঁচে নষ্ট হয়ে গেছে। প্রতি ট্রাকের ৭৫ শতাংশ পেঁয়াজ পঁচে নষ্ট হয়ে গেছে বলে জনিয়েছে বন্দরের ব্যবসায়ীরা। এঅবস্থায় দারুন ক্ষতির মুখে পড়েছে পেঁয়াজ আমদানি কারকরা।



মেয়াদ উত্তীর্ণ পৌরসভার নির্বাচনের দাবীতে ‘সর্বদলীয় সম্প্রীতি উদ্যোগে মোংলায় মানববন্ধন

 মেয়াদ উত্তীর্ণ  পৌরসভার নির্বাচনের দাবীতে ‘সর্বদলীয় সম্প্রীতি উদ্যোগে মোংলায় মানববন্ধন

 

মোঃএরশাদ হোসেন রনি, মোংলা   

মেয়াদ উত্তীর্ণ মোংলা পোর্ট পৌরসভার দ্রুততম সময়ে অবাধ, সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচনের দাবীতে মোংলায় মানববন্ধন কর্মসূচী পালিত হয়েছে। রবিবার বেলা ১১টার দিকে পৌর শহরের চৌধুরীর মোড়ে এ মানববন্ধনের আয়োজন করে ‘সর্বদলীয় সম্প্রীতি উদ্যোগথ নামক কমিটি। মানববন্ধন চলাকালে পথসভায় সভাপতিত্ব করেন ‘সর্বদলীয় সম্প্রীতি উদ্যোগথর মোংলা সমন্বয়কারী সাবেক উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ও সাংবাদিক মোঃ নূর আলম শেখ। এ সময় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক উৎপল মন্ডল, সুজনথর ভারপ্রাপ্ত সভাপতি অধ্যাপক শেখ নজরুল ইসলাম, উপজেলা যুবলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি রফিকুল ইসলাম সোহাগ, পৌর বিএনপি নেতা আব্দুস সালাম ব্যাপারী, বিএনপি নেতা আব্দুর রশিদ, শ্রমিকলীগ নেতা নুরউদ্দিন আল মাসুদ ও সিপিবি নেতা মোঃ নাজমুল হক।


মানববন্ধন কর্মসূচীতে বক্তারা বলেন, দশ বছর অতিক্রান্ত হতে যাচ্ছে কিন্তু তারপরও মোংলা পোর্ট পৌরসভার নির্বাচন হচ্ছেনা। মোংলা পোর্ট পৌরসভার সর্বশেষ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে ২০১১ সালের ১৩ জানুয়ারী। বর্তমান পরিষদের মেয়াদকাল উত্তীর্ণ হওয়ার পরেও সীমানা সংক্রান্ত আইনি জটিলতায় আটকে যায় নির্বাচন। আর তাই আমরা মোংলা পোর্ট-পৌরসভার দ্রুততম সময়ে একটি অবাধ, সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচনের দাবি করছি। 


‘সর্বদলীয় সম্প্রীতি উদ্যোগথর সমন্বয়কারী নুর আলম শেখ বলেন, আওয়ামী লীগ, বিএনপি, কমিউনিস্ট পার্টিসহ বিভিন্ন সাংস্কৃতিক ও সামাজিক সংগঠনের নেতৃত্ব স্থানীয় ২০জন ব্যক্তিবর্গের সমন্বয়ে ‘সর্বদলীয় সম্প্রীতি উদ্যোগথ গঠিত হয়েছে। যার উদ্দেশ্য হচ্ছে এলাকার শান্তি-শৃঙ্খলা-সৌহাদর্য-সম্প্রীতি বৃদ্ধিতে গণতন্ত্র ও মৌলিক মানবাধিকার রক্ষায় কাজ করা। আর তাই আমরা মোংলা পোর্ট পৌরসভার নাগরিকদের গণতান্ত্রিক অধিকার সুরক্ষায় দ্রুততম সময়ের মধ্যে একটি অবাধ, সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ ও গ্রহণযোগ্য পৌর নির্বাচনের দাবি জানাচ্ছি। আমরা সকল দলের মানুষ নিয়েই পৌর নির্বাচনের দাবীতে মানববন্ধন কর্মসূচীর মত আন্দোলনে নেমেছি। মানববন্ধন শেষে সর্বদলীয় সম্প্রীতির উদ্যোগথর পক্ষ থেকে উপজেলা নির্বাহী অফিসার কমলেশ মজুমদারের মাধ্যমে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় ও নির্বাচন কমিশন বরাবর স্মারকলিপি প্রদাণ করা হয়। 

দেশে বর্জ্যপানিতে মিলেছে করোনাভাইরাসের জিন

 দেশে বর্জ্যপানিতে মিলেছে করোনাভাইরাসের জিন




নোবিপ্রবি প্রতিনিধি:করোনাভাইরাসের জন্য দায়ী সার্স কোভ-২ ভাইরাসের জিনগত উপাদান বাংলাদেশের বর্জ্যপানিতে পাওয়া গেছে বলে দাবি করেছেন গবেষকরা। নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (নোবিপ্রবি) এবং বেসরকারি নর্থসাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষক দলের নতুন এক গবেষণায় এমন তথ্যের প্রমাণ মিলেছে। গবেষকগণ এ বছরের ২০ জুলাই  থেকে ২৯ আগস্ট দেশের উপকূলীয় জেলা নোয়াখালীর শহীদ ভুলু স্টেডিয়ামে স্থাপিত কভিড-১৯ আইসোলেশন কেন্দ্রের আশপাশের ড্রেন, নর্দমা,পয়োনিষ্কাশনব্যবস্থা ও শৌচাগারের সঞ্চালন লাইন থেকে বর্জ্যপানির নমুনা সংগ্রহ সংগ্রহ করেন। আর সংগৃহিত নমুনা থেকে ‘ওআরএফ১ এবি’ এবং ‘এন প্রোটিন’ জিনসহ করোনাভাইরাসের উপস্থিতি সফলভাবে শনাক্ত করতে সক্ষম হন।  


গবেষকরা জানান, বর্জ্যপানি একটি যন্ত্রচালিত ছাঁকনি মেশিরে সাহায্যে আগে ছেঁকে  নেয়া হয়। তখন ময়লা নিচে চলে যায়। ওপরের পানি আলাদা করা হয়। ওই প্রক্রয়ায় পানি আবার ছাঁকলে ভাইরাসগুলো সব নিচে চলে যায়। নোবিপ্রবিতে আরটিপিসিআর পদ্ধতি ব্যবহার করে ওই তলানি থেকে করোনা শনাক্ত করেছেন তারা। সারা পৃথিবীতে করোনা ভাইরাসের উপস্থিতি প্রমাণে এবং ওয়েস্টওয়াটার (বর্জ্যপানি) ট্রিটমেন্ট কাজে ড্রেনের পানিকে গুরুত্ব দিয়ে বিবেচনা করে আসছেন বিজ্ঞানীরা। তাই নোয়াখালীর শহীদ ভুলু স্টেডিয়ামে করোনা রোগীদের জন্য স্থাপিত আইসোলেশন কেন্দ্রের নিকট ড্রেনের পানিকে নমুনা হিসেবে প্রাধান্য দেন গবেষক দলটি। আর  বাংলাদেশে নর্দমা ও ড্রেনের পানিতে কোভ-২ আরএনএ সনাক্তকরণের এটাই প্রথম সফল প্রচেষ্টা বলে দাবি তাদের। 


গবেষণা প্রতিবেদনটির নতুন দিক হলো এখানে আইসোলেশন কেন্দ্রের একটি নির্দিষ্ট সংখ্যক কোভিড রোগীর ‘জেনেটিক লোডকে’ তুলে ধরা হয়েছে। পৃথিবীতে এসময়ে সম্পাদিত অনেক গবেষণার মতো এর মাধ্যমে কোনো দেশে কিংবা এর নির্দিষ্ট কোনো শহরে কি পরিমাণে কভিড আক্রান্ত রোগী রয়েছে তা অনুমান সম্ভব। করোনা আক্রান্ত বেশিরভাগ রোগীর শরীরে কোনও উপসর্গ দেখা যাচ্ছে না, বা সামান্য উপসর্গ দেখা গেলেও তাদের হাসপাতালে না রেখে বাড়িতে রাখা হচ্ছে। সে কারণে নর্দমার বর্জ্যপানি থেকে এই ভাইরাস ছড়ানোর সম্ভাবনাও বাড়ছে। একটি এলাকায় করোনা আছে কিনা, তা জানতে ওই এলাকার সম্ভাব্য রোগীদের উপর পরীক্ষার আগে সেখানকার ড্রেনের পানি পরীক্ষা একটি গুরুত্বপূর্ণ উপায় হতে পারে। এ গবেষণা প্রতিবেদনটির প্রাথমিক সাফল্য এখানেই। 


এ বিষয়ে প্রতিথযশা ভাইরোলজিস্ট এবং বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ডা. নজরুল ইসলাম বলেন, গ্যাস্ট্রো ইন্টেস্টাইনে কভিড-১৯ এর অস্তিত্বের প্রমাণ আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত। আমাদের দেশে ড্রেনের পানি তথা বর্জ্যপানিতে কভিড-১৯ এর উপস্থিতি প্রমাণে গবেষকদের নতুন পদ্ধতিটি ভবিষ্যতে দেশে করোনাভাইরাস প্রতিরোধে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। অধ্যাপক নজরুল ইসলাম গবেষকদের এমন উদ্যোগকে দেশের ড্রেন ও নর্দমার পানিকে নজরদারির আওতায় এনে কার্যকর ওয়েস্টওয়াটার ট্রিটমেন্ট ব্যবস্থা উন্নয়নের একটি উল্লেখযোগ্য অর্জন বলে মনে করছেন।


নোবিপ্রবি কভিড-১৯ ডায়াগনস্টিক ল্যাবের ফোকাল পয়েন্ট ও গবেষক দলের প্রধান অধ্যাপক ড. ফিরোজ আহমেদ বলেন, যেহেতু সংক্রমিত কিংবা সংক্রমিত নয় উভয় ব্যক্তির শরীর থেকে নির্গত মলমূত্রের মাধ্যমেই ভাইরাস ছড়ায়। সুতরাং দেশে করোনা পরিস্থিতির সর্বশেষ পর্যবেক্ষণ এবং সংক্রমণের উঠা নামা সঠিকভাবে মূল্যায়নে বর্জ্যপানি নিরীক্ষণ একটি ফলপ্রসু পদ্ধতি। আমাদের সংগৃহিত অনেক কভিড-১৯ রোগীর মলে ‘ওআরএফ১ এবি’ এবং ‘এন প্রোটিন’ জিনসহ বেশ কয়েকটি জিন এর উপস্থিতি পাওয়া গেছে। ফলে  ড্রেন কিংবা নর্দমার বর্জ্যপানি পরীক্ষা করে কোনো এলাকায় করোনা আছে কিনা, তা জানা যেতে পারে। গবেষক দলের অন্য সদস্যরা হলেন-

 নোবিপ্রবির অধ্যাপক ড. নেওয়াজ মোহাম্মদ বাহাদুর, সহকারী অধ্যাপক ফয়সাল হোসেন, মো. শাহাদাত হোসেন, আমিনুল ইসলাম, মো. মাইন উদ্দিন এবং  নর্থসাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের জিনোম রিসার্চ ইনস্টিটিউট এর পরিচালক ড. মোহাম্মদ মাকসুদ হোসেন, একই বিশ্ববিদ্যালয়ের স্কুল অব হেলথ এ্যান্ড লাইফ সায়েন্সের ডিন প্রফেসর হাসান মাহমুদ রেজা ও অধ্যাপক মো. জাকারিয়া, পিএইচডি।


এ গবেষণা কার্যক্রমের ব্যাপারে নোবিপ্রবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. দিদার-উল-আলম বলেন, ড্রেনের পানি তথা বর্জ্যপানিতে কভিড এর উপস্থিতি প্রমাণে গবেষকদের নতুন পদ্ধতিটি আমাকে আনন্দিত ও উৎসাহিত করেছে। আমি আশা করি এটি দেশে করোনাভাইরাস প্রতিরোধে আমাদের একটি নতুন পথের সন্ধান দিবে। তিনি আরো বলেন, দেশে মার্চে করোনা মহামারী শুরু হয়। পরে ১১ মে, ২০২০ থেকে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণায়ের অনুমোদনে এবং বিশ্ববিদ্যালয় আর্থিক অনুদানে নোবিপ্রবি মাইক্রোবায়োলজি বিভাগে ‘আরটিপিসিআর’ মেশিনে কভিড-১৯ শনাক্তকরণ কার্যক্রম চালু করা হয়। করোনা ল্যাবে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, স্টাফ এবং শিক্ষার্থীরা নিরলস কাজ করছে। ইতোমধ্যে এ ল্যাবে নোয়াখালী ও লক্ষীপুর জেলার দশ উপজেলার ২১ হাজার নমুনা পরীক্ষা সম্পন্ন করা হয়েছে।

দৌলতপুর উপস্বাস্থকেন্দ্রে ২২ জন চিকিৎসক থাকলেও থাকেন না কর্মস্থলে

দৌলতপুর উপস্বাস্থকেন্দ্রে ২২ জন চিকিৎসক থাকলেও থাকেন না কর্মস্থলে




কুষ্টিয়া জেলা প্রতিনিধি //জনবহুল বাংলাদেশের মানুষের স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করতে ইউনিয়ন ভিত্তিক উপ-স্বাস্থকেন্দ্র চালু করে সরকার, যেগুলোর পরিকল্পনা একেকটি মোটামুটি স্বয়ং সম্পন্ন হাসপাতাল,যেখানে থাকার কথা বহির্বিভাগ, ওআরটি কর্নার,যক্ষা ও কুষ্ঠ নিয়ন্ত্রণ, আইএমসিআই,প্যাথলজি-এক্সরে,স্বাস্থ্য শিক্ষার মতো গুরুত্বপূর্ণ সব সেবা। প্রায় ৮ লাখ জনসংখ্যার একটি উপজেলা দৌলতপুরেও রয়েছে এই পরিকল্পনার বাস্তবায়ন প্রকল্প,কিন্তু হতাশার ঘটনা উঠে এসেছে প্রতিবেদনে। আয়তনেও দেশের বৃহত্তম উপজেলা গুলোর মধ্যে অন্যতম কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলা। ৫০ শয্যার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স, ৫২ টি কমিউনিটি ক্লিনিক আর ১৪ টি উপ-স্বাস্থ্যকেন্দ্রের মাধ্যমে এই উপজেলার মানুষের স্বাস্থ্য সেবা পাওয়ার কথা থাকলেও, তা কেবল মৌখিক। নেই কাগজ কলমের সঠিক হিসাবও। ১৪টি উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্রের দু’টি আগেই বন্ধ দাতা দেশ নেদারল্যান্ডের সিদ্ধান্তে। অব্যবহৃত থাকায় ভবন দু‘টি এখন পরিত্যাক্ত। সেবা প্রত্যাশীরা বলছেন, এসব স্বাস্থ্যকেন্দ্রে কোন চিকিৎসক বা চিকিৎসা কোনটাই পান না তারা। নি¤œ আয়ের এক বিশাল জনগোষ্ঠী বঞ্চিত সরকারি বরাদ্দের এই বিনামূল্যের সেবা থেকে। বাঁকি ছ’টি স্বাস্থ্যকেন্দ্রের সেবা কাগজে কলমে চালু থাকলেও তার বাস্তবায়ন নেই দাবি স্থানীয়দের। কোথাও স্বাস্থ্য বিভাগের কোন মানুষই আসেন না,আবার কোথাও চিকিৎসা দিচ্ছে স্বাস্থ্যকেন্দ্রের কর্মচারী কিংবা ফার্মাসিস্ট নিজেই। দিনের পর দিন,মাসের পর মাস চিকিৎসকেরা এখানে আসেন না বলে জানিয়েছেন নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক কর্মচারী। খোদ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা-ই অস্পষ্ট বক্তব্য দিচ্ছেন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ২২ জন চিকিৎসক কে কোথায় কাজ করছেন ? করোনা কালীন সেবাদানে কিছুটা হেরফের আসলেও কুষ্টিয়ার দৌলতপুরের এ দৃশ্য সবসময়ের। কিন্তু সমাধানের চেষ্টায় স্বাস্থ্য কর্মকর্তার উদাসীনতা চোখে পড়ার মতো, ২২ জনের মধ্যে কর্মস্থলে দেখা মিলেছে হাতে গোনা কয়েক জনকে। অন্যদিকে শুভঙ্করের ফাঁকি দিচ্ছেন উপ-স্বাস্থ্যকেন্দ্রে দায়িত্বরত চিকিৎসকেরা। কর্মস্থলে না গিয়েও উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা কে মিথ্যা তথ্য দিতে দেখা যায়, বুধবার ১৬ সেপ্টেম্বর খলিশাকুন্ডী কেন্দ্রে দায়িত্বে থাকা চিকিৎসক অমৃত দাসকে,অনুসন্ধানে চিকিৎসকদের এ চর্চা লম্বা সময় ধরে চলছে বলে পরিষ্কার হয়। বেলা ১০ টা থেকে ৩ টা পর্যন্ত বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা দেয়ার কথা থাকলেও মাঝে মধ্যে কর্মকর্তারা ঢু দেন দু’একটি জায়গায়। এক ভুক্তভোগী জানান, ডাক্তার থাকে না, গেলেই শুধু প্যারাসিটামল দেয়,ব্যাথার ওষুধ চাইলে বলে ব্যাথার ওষুধ নাই গ্যাসের ওষুধ নাই। এ প্রসঙ্গে স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা তৌহিদুল হাসান তুহিন বলেন, কিছু দোষ আমাদের আছে। এছাড়া তিনি তুলে ধরেন কিছু প্রতিবন্ধকতা ও সীমাবদ্ধতার কথা। কিন্তু,সমস্যার সমাধানে পর্যাপ্ত উদ্যোগ আর সেবা মনিটরিংয়ে ব্যাপক গাফিলতির চিত্র দেখা যায় তার। যোগদানের পরপর উপ-স্বাস্থ্যকেন্দ্রের সমস্যা স্থানীয় গণমাধ্যমে তুলে ধরা হলেও গত কয়েকমাসে মাত্র একটি কেন্দ্র পরিদর্শনের সুযোগ হয়েছে এই কর্মকর্তার। উর্ধতন কর্তৃপক্ষ কে বিষয়গুলো দাপ্তরিক ভাবে অবগত করার বিষয়ে সদুত্তর দিতে পারেননি তিনি। মূল কমপ্লেক্স,কমিউনিটি ক্লিনিক, আর উপ-স্বাস্থ্যকেন্দ্রের সেবা সুবিধা বাড়াতে কাজ করে যাচ্ছেন বলে জানালেন স্থানীয় এমপি সরওয়ার জাহান বাদশাহ। তিনি বলেন সংশ্লিষ্ট দপ্তর, মন্ত্রী,সচিবকে এমনকি জাতীয় সংসদেও আমি দৌলতপুরের চিকিৎসা সেবা উন্নয়নের বিষয়ে বেশ কিছু সহায়তা চেয়েছি। চলতি অর্থবছরে সেগুলো ইনশাল্লাহ দৌলতপুরের মানুষ পাবে বলে আশা করছি। তবে চিকিৎসকদের গাফিলতি থাকলে সেটা খুবই দুঃখজনক, বিষয়গুলো আমিও গুরুত্ব দিয়ে দেখছি বলে জানান এমপি। বিগত বছরগুলোর মতো চলতি অর্থ-বছরেও উপ-স্বাস্থ্যকেন্দ্র গুলো বাবদ পর্যাপ্ত ব্যয় দেখাচ্ছে উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ।

ফের নওগাঁর প্রস্তাবিত বিশ্ববিদ্যালয়টি পাহাড়পুরে পূর্ণ প্রতিষ্ঠার দাবিতে মানববন্ধন

 ফের নওগাঁর  প্রস্তাবিত বিশ্ববিদ্যালয়টি  পাহাড়পুরে পূর্ণ  প্রতিষ্ঠার  দাবিতে মানববন্ধন




রহমত উল্লাহ বদলগাছী নওগাঁ:বাংলাদেশ সরকার অনুমোদিত প্রস্তাবিত নওগাঁর পাবলিক   বিশ্ববিদ্যালয় টি পাহাড় পুরে পূর্ণ প্রতিষ্ঠার দাবিতে বদলগাছী উপজেলার মিঠাপুরে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

১৯-ই সেপ্টেম্বর বিকেল পাঁচটায় মিঠাপুর বাজারে পাহাড়পুরে   বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে ৯ম বার মতো মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। 

বিশ্ববিদ্যালয় নির্মাণ নিয়ে চলছে নানান  দ্বিমত প্রসন টানা হিচরে অধিকার হরণের পাঁয়তারা। 


নওগাঁ জেলার বদলগাছী উপজেলার পাহাড়পুর বৌদ্ধবিহার ঐতিহ্যের এক বিরল ছায়া তার পূর্ণতা অর্জনে চায় পাহাড় পুরে প্রস্তাবিত বিশ্ববিদ্যালয়টি '' পাহাড়পুর বিশ্বের প্রসিদ্ধ কেন্দ্র গুলোর মধ্যে অন্যতম।  এটি ছিল রাজা ধর্মপালের আমলের ৭৮১ থেকে৮২১ স্তব্ধ পর্যন্ত ছিল পাহাড়পুরে প্রাচীনতম বিশ্ববিদ্যালয় যেখানে ভারত উপমহাদেশ বার্মা, নেপাল, ভুটান সহ বহু দেশ থেকে ও শিক্ষা অর্জন  আসত

তারই ধারাবাহিকতা পণ্য রাখতে এলাকাবাসীর জোর দাবি নওগাঁর প্রস্তাবিত বিশ্ববিদ্যালয়টি পাহাড়পুরের প্রাণকেন্দ্রে পুনঃ নির্মাণ করে পাহাড়পুরের পুরনো ঐতিহ্যকে পুনরুদ্ধার  করা হোক।


পাহাড়পুর বৌদ্ধবিহার তথা সোমপুর বিহারের ঐতিহ্যকে পুনরুদ্ধার ও বহিঃবিশ্বে পাহাড়পুরের মান পূর্ণ রাখতে এলাকাবাসী সকলের দাবি পাহাড়পুরে নওগাঁ প্রস্তাবিত বিশ্ববিদ্যালয় টি স্থাপন করা হোক এতে করে এলাকার নিরক্ষতা দূরীকরণ পাহাড়পুরে ঐতিহ্যকে লালন করতে পড়ার সুযোগ সৃষ্টি করা হোক তাতে বাংলাদেশের মান পূর্ণতা অর্জিত হবে 


 পাহাড়পুর বৌদ্ধবিহার পূর্ণ  নির্মাণের দাবিতে মানববন্ধনে অংশ নেন এলাকাবাসী ও বদলগাছীর  সর্বস্তরের জনসাধারণ।  

দর্শনা থানার অফিসার ইনচার্জ মাহাবুবুর রহমান ৭ মাসে ৪ বার শ্রেষ্ঠ অফিসার

 দর্শনা থানার অফিসার ইনচার্জ  মাহাবুবুর রহমান ৭ মাসে ৪ বার শ্রেষ্ঠ অফিসার


খোন্দকার আব্দুল্লাহ বাশার। 

খুলনা ব্যুরো প্রধান:চুয়াডাঙ্গা জেলার দর্শনা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ মাহাবুবুর রহমান ৭ মাসে ৪ বার শ্রেষ্ঠ ওসি হয়ে সকলকে তাক লাগিয়ে দিলেন। পরিশ্রম যে সাফল্যের চাবী কাঠি, সেটা আবারো প্রমান করলেন, উদীয়মান তরুন প্রতিভাবান জন বান্ধব পুলিশ অফিসার (ওসি) মাহাবুবুর রহমান। 


অল্পদিনে গঠিত দর্শনা থানার নতুন ওসির তকমা গায়ে লাগিয়ে অনেক পুরাতনদের পেছনে ফেলে একের পর এক শ্রেষ্ঠতা অর্জন এ এক পুজনীয় আশির্বাদ, এ অর্জন দর্শনা থানা বাসীর। এ অর্জন সিনিয়র পুলিশ কর্মকর্তাদের, যারা বুঝে শুনেই তার মত একজন তরুন পুলিশ অফিসারের কাঁধে কয়েক লক্ষ জনগনের যান-মালের নিরাপত্তার দায়িত্ব তুলে দিয়ে ছিলেন। পুলিশ অফিসার হিসাবে দায়িত্ব পালন কালে বাংলাদেশের যেখানেই থাকুন মানুষের মঙ্গলের জন্য কাজ করে যাবেন, অন্যায়ের বিরুদ্ধে হিংস্র বাঘের মতো ঝাঁপিয়ে পড়বেন, শ্রেষ্ঠতার অর্জন যেন অটুট থাকে। ৪র্থ বারের মত চুয়াডাঙ্গা জেলার শ্রেষ্ঠ ওসি সম্মাননা পাওয়ায় দর্শনার ওসি মাহাবুবুর রহমানকে জানায় শুভেচ্ছা। 


মাদকদ্রব্য উদ্ধার, মাদক কারবারীদের গ্রেপ্তার, চোরাচালানকারীদের দমন, ওয়ারেন্ট তামিল সহ অন্যান্য অপরাধ দমনে বিশেষ ভূমিকা রাখায় পর পর চতুর্থ বারের মত চুয়াডাঙ্গা জেলার শ্রেষ্ঠ অফিসার ইনচার্জ (ওসি) হিসেবে মনোনীত হওয়ায় অপনার শুভাকাঙ্ক্ষী সহ দর্শনাবাসীরাও আনন্দিত।


পুলিশ অফিসারদের মধ্যে উৎসাহ সৃষ্টির জন্য মানবিক পুলিশ সুপার মোঃ জাহিদুল ইসলাম অফিসার ইনচার্জ দর্শনা থানার হাতে উপহার হিসেবে ক্রেস্ট, নগদ ২০,০০০/= (বিশ হাজার) টাকা এবং সম্মাননা সার্টিফিকেট তুলে দেন।


উল্লেখ্য, ভারত সীমান্তবর্তী বাংলাদেশের দক্ষিণ পশ্চিমে অবস্থিত কেরু এন্ড কোম্পানি সুগার মিল নামে পরিচিত এলাকাটির নাম দর্শনা। এই দর্শনা এলাকার ৪টি ইউনিয়ন যথাঃ তিতুদহ, বেগমপুর, পারকৃষ্ণপুর-মদনা ও কুড়ুলগাছি ইউনিয়ন ও ১টি পৌরসভা যথাঃ দর্শনা পৌরসভা এলাকা নিয়ে গঠিত দর্শনা থানা। বাংলাদেশের চুয়াডাঙ্গা জেলার একটি থানা দর্শনা থানা। ২০১৯ সালের ২১ অক্টোবর দর্শনা থানা হিসেবে ঘোষণা দেওয়া হয়। ২০২০ সালের ২৯ ফেব্রুয়ারিতে দর্শনা থানার আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল । দর্শনা থানার প্রথম অফিসার ইনচার্জ (ওসি) হিসেবে যোগদান করেন পুলিশ পরিদর্শক মাহাবুবুব রহমান।

হবিগঞ্জ-শায়েস্তাগঞ্জ-বাল্লা রেলপথ অযত্ন আর অবহেলায় অস্তিত্ব সংকটে পড়েছে

 হবিগঞ্জ-শায়েস্তাগঞ্জ-বাল্লা রেলপথ অযত্ন আর অবহেলায় অস্তিত্ব সংকটে পড়েছে

লিটন পাঠান, হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধিঃঅস্তিত্ব সংকটে পড়েছে হবিগঞ্জ- শায়েস্তাগঞ্জ বাল্লা রেলপথ প্রায় ১৭ বছর ধরে এ রেলপথটি বন্ধ রয়েছে, এতে একদিকে যেমন রেলওয়ের জমি দখল হচ্ছে, তেমনি চুরি হয়ে যাচ্ছে রেলওয়ের নানা যন্ত্রপাতি। এছাড়া রেললাইনেও কোথাও স্লিপারের ছিটেফোঁটা নেই। এখন রেললাইন ঘিরে তৈরি করা হচ্ছে বাইপাস সড়ক। অথচ ১৯২৮ সালে ব্রিটিশ সরকার হবিগঞ্জ থেকে শায়েস্তাগঞ্জ জংশন হয়ে বাল্লা সীমান্ত পর্যন্ত প্রায় ৫২ কিলোমিটার রেল লাইন স্থাপন করে। চা-পাতা রপ্তানি ও বাগানের রেশনসহ, জ্বালানি তেলসহ আনুষঙ্গিক জিনিসপত্র আমদানি করার একমাত্র মাধ্যম ছিল এ রেলপথ। বর্তমানে অস্তিত্ব বিলীনের পথে রয়েছে রেলপথটি। এজন্য দ্রুত রেললাইনটি চালু করার দাবি জানিয়েছেন স্থানীয়রা।


খোঁজ নিয়ে জানা যায়, স্বাধীনতার পর এরশাদ সরকারের প্রথম দিকে এ লাইনটি সর্বপ্রথম বন্ধ হয়ে যায়। পরে আবার চালু করা হলেও ফের ১৯৯১ ও ১৯৯৬ সালে ট্রেন চলাচল বন্ধ হয়। সর্বশেষ ২০০৩ সাল থেকে এ লাইনে ট্রেন চলাচল বন্ধ রয়েছে। অনুসন্ধানে জানা যায়, একশ্রেণির মানুষ এসব জমি দখল করে দালান তৈরি করছেন। রেলওয়ের জমিতে চলছে নানা রকম ফসলের চাষাবাদ। বিগত ২০০৫ সালের দিকে সড়ক করার অজুহাতে হবিগঞ্জ বাজার থেকে শায়েস্তাগঞ্জ রেলওয়ে জংশন পর্যন্ত প্রায় ১৫ কিলোমিটার রেলপথ তুলে ফেলা হয়।


বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের আমলের অঘোষিতভাবে বন্ধ হওয়ার পর থেকেই একটি প্রভাবশালী মহল রেলের বিশাল সম্পদের দিকে নজর দেয়। পরে আবার শায়েস্তাগঞ্জ থেকে হবিগঞ্জ পর্যন্ত রেল লাইনটি উঠিয়ে বাইপাস সড়ক নির্মাণ করা হয়। এর সাথে শায়েস্তাগঞ্জ-বাল্লা রেল লাইনের প্রায় ৩৬ কিলোমিটার সড়কের রেলের শিক, পাথর, সিগন্যাল, তার, নাট-বল্টু ও ওজন মাপার যন্ত্রপাতি এবং ৭টি স্টেশনের অবকাঠামোসহ কোটি কোটি টাকার মালামাল লুটপাট শুরু হয়। সেই থেকে এ পর্যন্ত ৯৫ ভাগ লুটপাট হয়েছে। কিন্তু লুটপাট-কারীদের নির্দিষ্ট কোন তালিকা নেই কোথাও। 


রেলওয়ে কর্তৃপক্ষের নীরবতায় লুটপাটকারীরা এখনো ধরাছোঁয়ার বাইরে রয়ে গেছে। স্থানীয়রা বলছেন শায়েস্তাগঞ্জে এক জনসভায় তৎকালীন রেলমন্ত্রী প্রয়াত সুরঞ্জিত সেন গুপ্ত হবিগঞ্জ-শায়েস্তাগঞ্জ বাল্লা রেলপথ আবারো চালু করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন। কিন্তু সেই প্রতিশ্রুতিতেই আটকে আছে রেললাইন চালুর কাজ। অথচ এ পথে ট্রেন চালু হলে হাজার হাজার মানুষের ব্যবসা বাণিজ্যে প্রাণ ফিরে পাবে। একই সাথে এলাকার ব্যবসা-বাণিজ্যে প্রসার ঘটবে।


শায়েস্তাগঞ্জ রেলওয়ে স্টেশন মাস্টার এবিএম সাইফুল ইসলাম বলেন, বাল্লা রেলপথ আবার চালু হবে কি-না এটি রেল মন্ত্রণালয় বলতে পারবে। আর রেলের মালামাল চুরির বিষয়টি পিডব্লিউআই দেখে আমরা এ বিষয়ে অবগত নই। শায়েস্তাগঞ্জ রেলওয়ে জংশনের ঊর্ধ্বতন উপ-প্রকৌশলী (পথ) মো. সাইফুল ইসলাম বলেন, আপাতত বাল্লা রেলপথ চালু হওয়ার কোন সম্ভাবনা নেই। বাল্লা রেলপথের মালামাল চুরি হবার বিষয়ে আপনারা কি পদক্ষেপ নিয়েছেন জানতে চাইলে তিনি বলেন আমি এখানে নতুন জয়েন করেছি। 


আগে কি হয়েছিল আমি সে বিষয়ে অবগত নই আমি জয়েন করার পর এখন চুরি হচ্ছে না। চুরি রোধে আমরা ব্যবস্থা নিয়েছি। যদি কখনো এ রাস্তা পুনরায় সংস্কার হয়, তবে ট্রেন চালু হতে পারে বলেও জানান তিনি। আর হবিগঞ্জের সাংসদ এডভোকেট মো. আবু জাহির এমপি বলেন, বাল্লা রেলপথ আমার এরিয়া না এটি বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মাহবুব আলী দেখেন। এ বিষয়ে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী এডভোকেট মো. মাহবুব আলীর সাথে যোগাযোগ করা হলে তাকে পাওয়া যায় নি।

পটিয়ায় দক্ষিণ ভুর্ষি ইউনিয়নে সমাজ সেবক মঞ্জুরুল ইসলাম এর ৩৭ তম জন্মদিন পালন

 পটিয়ায় দক্ষিণ ভুর্ষি ইউনিয়নে সমাজ সেবক মঞ্জুরুল ইসলাম এর ৩৭ তম জন্মদিন পালন




সেলিম চৌধুরী, পটিয়া প্রতিনিধিঃচট্টগ্রামের পটিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগ নেতা দক্ষিণ ভুর্ষি ইউনিয়নের কৃতি সন্তান বিশিষ্ট ব্যাবসায়ী সমাজ সেবক মঞ্জুরুল ইসলামের ৩৭ তম জন্মদিন পালন করা হয়েছে। জন্মদিন উপলক্ষে ১৮ সেপ্টেম্বর রাত ৮টার সময় দক্ষিণ ভুর্ষি ইউনিয়ন দিঘীর পাড় এলাকায় একটি খেলার মাঠে  ৩৭ পাউন্ড এর কেক কেটে জন্মদিন উদ্বোধন ও প্রধান অতিথি ছিলেন পটিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহসভাপতি ও পটিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান সমিতির সাধারণ সম্পাদক দক্ষিণ ভুর্ষি ইউনিয়ন থেকে বার বার নির্বাচিত জনপ্রিয়  চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সেলিম। এসময় উপস্থিত ছিলেন দক্ষিণ ভুর্ষি ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ  সভাপতি মিহির চক্রবর্তী, সাধারন সম্পাদক জাহাঈীর আলম, পটিয়া উপজেলা আওয়ামী যুবলীগ আহবায়ক কমিটির কার্যকরী সদস্য মোঃ ফোরকান, দিদারুল আলম, এনাম মজুমদার, দক্ষিণ ভুর্ষি ইউনিয়ন আওয়ামী যুবলীগ আহবায়ক মোরশেদুল হক,জহিরুল ইসলাম সানু, ওয়াহেদুর নুর মিন্টু 


বেলাল উদ্দিন নুরু, মেম্বার আহমদ নুর সাগর, অজিত দেব নাথ মেম্বার, মেম্বার জায়দুল হক, মাহবুল আলম বুলু মেম্বার,        ১ নং ওয়ার্ড সভাপতি জাহেদুল হক, সাধারণ সম্পাদক  শাহ আলম খোকন,২ নম্বর ওয়ার্ড সভাপতি ইকবাল হোসেন, ৩ নম্বর ওয়ার্ড সভাপতি খোকন 


দক্ত,সাধারণ সম্পাদক  


নজরুল ইসলাম, সাধারন সম্পাদক ৩নং ওয়াড় আওয়ামীলীগ সনজিৎ দাশ টুকুন, যুবলীগ  রণধীর যুগ্ন আহবায়ক দঃভৃর্ষি যুবলীগ, সাদ্দাম হোসেন, আবদুর রহিম, আবদুস সবুর, মোঃ ইউনুস,, সিবলু, মোহাম্মদ হোসেন, আনোয়ার হোসেন, রাজুদাশ, রুবেল চক্রবর্তী  নেপাল, ডাঃ আরিফ, যাদব সর্দার, ছাএলীগ নেতা মোঃ হোসেন, তারেক আজিজ,মিজান, ইরফানুল, ইমন, তরিকুল ইসলাম, দিদারুল আলম, রবিন,সরোয়ার, তোহা, কায়ছার, জাহেদ, ফরহাদ, মারুফ, সাকিব, গিয়াস,মামুন, সিহাব,মোঃ কায়ছার, জয়নাল, ইমরান,ইমু,আবির,সিজান,সাগর,শাওন, মহিম,জিহাদ, মিজান, ইমন প্রমুখ।উক্ত অনুষ্ঠানে উদ্বোধক ও প্রধান অতিথি চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সেলিম বলেন মানুষের জন্ম মৃত্যু আল্লাহর হাতে। দুইদিনের দুনিয়া, ভালো কাজে মানুষের হৃদয়ে সারাজীবন বেছে থাকবে। তিনি বলেন আজ মঞ্জুরুল ইসলামের জন্মদিনে শত শত মানুষের আগমন দেখে সত্যি মনের মধ্যে আনন্দ বিরাজ করছে। আমি চাই আমার দক্ষিণ ভুর্ষি ইউনিয়ন দক্ষিণ চট্টগ্রামের মধ্যে অন্যতম ইউনিয়ন গড়ে তুলতে এ জন্য সকলকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করতে হবে। পটিয়ার দৃশ্যমান উন্নয়ন জাতীয় সংসদের হুইপ আলহাজ্ব হক চৌধুরীর নেতৃত্বে এগিয়ে যাচ্ছে আমি আশা রাখি আমার দক্ষিণ ভুর্ষি ইউনিয়নের অসমাপ্ত কাজগুলো সম্পন্ন করবেন এমপি সাহেব। তিনি আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, ছাএলীগ, স্বেচ্ছা সেবকলীগ,মহিলা আওয়ামীলীগ সহ সকল অঙ্গ সংগঠনকে শক্তিশালি করার আহবান জানান। সমাজ সেবক মঞ্জুরুল ইসলামের ৩৭ তম জন্মদিন পালন আওয়ামীলীগের মিলন মেলা পরিণত হয়। পরে অনুষ্ঠানে সকলের মাঝে তবররক বিতরণ করা হয়। সমাজ সেবক আওয়ামীগ নেতা মঞ্জুরুল ইসলাম কে বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে ক্রেস্ট প্রদান করা হয় এবং শতাধিক   ফুলের মালা দিয়ে শুভেচ্ছা জানান বিভিন্ন রাজনৈতিক সামাজিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। সভার শেষে মঞ্জুরুল ইসলামের দীর্ঘআয়ু কামনা করা হয়।                               

শায়েস্তাগঞ্জ থানার ওসি মোজাম্মেলসহ ৫ পুলিশ ক্লোজড

 শায়েস্তাগঞ্জ থানার ওসি মোজাম্মেলসহ ৫ পুলিশ ক্লোজড


লিটন পাঠান, হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধিঃঅবৈধ লেনদেনের অভিযোগে হবিগঞ্জের শায়েস্তাগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোজাম্মেল হোসেনসহ ৫ পুলিশ সদস্যকে ক্লোজড করা হয়েছে।

শনিবার রাতে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন হবিগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) আনোয়ার হোসেন।

তিনি জানান- গত ১৪-সেপ্টেম্বর ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের স্কয়ায়ের সামন থেকে দআরএফএল বেস্ট বাই’য়ের ম্যানেজার লুৎফুর রহমান তার এক কাস্টমারের মোটরসাইকেল করে ওলিপুর আসছিলেন এ সময় শায়েস্তাগঞ্জ থানা পুলিশ মোটরসাইকেলটি আটক করে কাগজপত্র দেখতে চায়।


কিন্তু চালক কাগজপত্র বাড়িতে রয়েছে জানালে আরএফএল বেস্ট বাইয়ের ম্যানেজার লুৎফুর রহমানের জিম্মায় মোটরসাইকেলটি রেখে চালক বাড়ি থেকে কাগজপত্র আনতে যান। কিন্তু তিনি আর কাগজপত্র নিয়ে না আসায় পুলিশ লুৎফুর রহমানকে থানায় নিয়ে যায়। পরে তাকে হাজতে আটকিয়ে সাড়ে ২৮ হাজার টাকা দাবি করেন শায়েস্তাগঞ্জ থানার ওসি মোজাম্মেল হোসেন। 

অন্যতায় তাকে ইয়াবা ব্যবসার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে মামলা দায়ের হুমকি প্রদান করা হয়। এক পর্যায়ে পুলিশের দাবি করা সাড়ে ২৮ হাজার টাকা দিয়ে রাতে থানা থেকে মুক্তি পান লুৎফুর রহমান।


এ ঘটনায় গত ১৭ সেপ্টেম্বর লুৎফুর রহমান হবিগঞ্জের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ উল্ল্যার কাছে একটি লিখিত অভিযোগ করেন। অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে পুলিশ সুপার একটি কমিটি গঠন করে তদন্ত শুরু করেন এতে প্রাথমিকভাবে অভিযোগের সত্যতা পাওয়ায় ওসি মোজাম্মেল হোসেন। এক সাব ইন্সপেক্টর ও ৩ কনস্টেবলকে ক্লোজড করা হয় এ ব্যাপারে তদন্ত অব্যাহত রয়েছে বলেও জানান অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আনোয়ার হোসেন।

উন্নয়ন কমিটির প্রচেষ্টায় বিদ্যুতের খুঁটি অপসারণ

 উন্নয়ন কমিটির প্রচেষ্টায় বিদ্যুতের খুঁটি অপসারণ



আহসান উল্লাহ বাবলু সাতক্ষীরা জেলা প্রতিনিধি ঃ    দীর্ঘ ১৫ বছর পর মধুমল্লারডাঙ্গী উন্নয়ন কমটিরি প্রচষ্টোয় সাতক্ষীরা কন্দ্রেীয় বাস  টার্মিনাল থেকে মধুমল্লারডাঙ্গী মধ্যগ্রামরে রাস্তার উপর স্থাপনকৃত বদ্যিুতরে খুঁটি অপসারণ করা হয়েছে। স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তদিরে  উপস্থিতিতে রাস্তার উপর থেকে জনগণরে চলাচলরে বাধা সৃষ্টি হওয়ায় অপসারণ করা হয়েছে । মধুমল্লারডাঙ্গী উন্নয়ন কমটিরি  সভাপতি ও শেখ রাসেল জাতীয় শিশু কিশোর পরিষদের সাতক্ষীরা পৌর শাখার সভাপতি


 নুরুল হকের ঐকান্তকি প্রচষ্টোয় রাস্তায় চলাচলের বাধা হয়ে থাকা ৩টি বিদ্যুতের খুঁটি অপসারণ এবং এবং ট্রান্সমিটার স্থাপন কাজটি বাস্তবায়ন করা হয়েছে।


এসময় উপস্থিত ছিলেনসভাপতি ও শেখ রাসেল জাতীয় শিশু কিশোর পরিষদের সাতক্ষীরা পৌর শাখার সভাপতি ও মধুমল্লারডাঙ্গী উন্নয়ন কমিটির সভাপতি মোঃনুরুল হক, সহ-সভাপতি বীর মুক্তিযুদ্ধা লে: অব) রিয়াছাত আলী ( ক্যাপ্টেন রাজা), যুগ্ম সম্পাদক ও মধুমল্লারডাঙ্গী মসজিদ কমিটির সভাপতি আব্দুস সালাম, মুক্তিযোদ্ধা কামরুজ্জামান বাবু,  মফিজুল ইসলাম ফোরম্যান শাহ আলম নয় নং ওয়ার্ড কমিটির সভাপতি হাজী মহসিন মোল্লা নজরুল ইসলাম নওশের আলী মঞ্জুরুল রেজাউল ইসলাম রেজা পেশকার আব্দুস সালাম লাইনম্যান লিটনসহ মধুমল্লারডাঙ্গী উন্নয়ন কমিটির কমিটির নেতৃবৃন্দ ও অত্র এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ। স্থানীয়রা জানান এলাকার সামগ্রিক উন্নয়নে মধুমল্লারডাঙ্গী উন্নয়ন কমিটির কার্যকর ভূমিকা রেখে যাচ্ছে। রাস্তাঘাট নির্মাণ, জলবদ্ধতা  নিরসন, পারিবারিক বিরোধ মীমাংসা, বিদ্যুৎ সমস্যার সমাধানসহ সামগ্রিক উন্নয়নের সংগঠনটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে।