দৌলতপুরের মথুরাপুরের ইউপি ওয়ার্ড উপনির্বাচনে তাহাজ উদ্দীনের জয়

দৌলতপুরের মথুরাপুরের ইউপি ওয়ার্ড  উপনির্বাচনে    তাহাজ উদ্দীনের জয়

কুষ্টিয়া জেলা প্রতিনিধি // 

এম,ডি,আল আসিবুজ্জামান চঞ্চল 

কুষ্টিয়া দৌলতপুরে ২ নং খাস মথুরাপুর  ইউনিয়ন পরিষদের ৩ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্যের উপনির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। 

আজ ১০ ডিসেম্বর (বৃহস্পতিবার) সকাল ৯ ঘটিকায় শুরু হয় ভোট গ্রহণ। নির্বাচনে ৩ জন  প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী ১. তাহাজ উদ্দীন - ফুটবল ২.  সজিবুর রহমান -আপেল, ও ৩. হাসানুল হক - টিউবওয়েল প্রতীক নিয়ে অংশ গ্রহণ করেন সকাল ৯ টা থেকে শান্তিপুর্ণ ও কঠোর নিরাপত্তার মাধ্যমে   অনুষ্ঠিত হয় এই নির্বাচন। বিকেল ৫ টায় ভোট গ্রহণ শেষ হয়। 

৫ টা ১০মিনিট থেকে ৫ টা ৫০ মিনিট পর্যন্ত ভোট গণনা  শেষে তাহাজ উদ্দীন ফুটবল প্রতীক  নিয়ে ৯৮৮ ভোট সজিবুর রহমান  আপেল প্রতীক নিয়ে ৬১৩ ভোট ও হাসানুল হক টিউবওয়েল প্রতীক নিয়ে ৫১৪ ভোট পাই। ৯৮৮ ভোট নিয়ে বিজয়ী ঘোষণা করা হয় তাহাজ উদ্দীনকে। এদিকে এলাকা বাসী ও স্থানীয় মহল  খুশি সুষ্ঠ, সুন্দর পরিবেশে ভোট গ্রহণ শেষ হওয়ায়।

ঝিকরগাছায় রাস্তা পাকাকরনের শুভ উদ্বোধন করেন এমপি নাসির উদ্দীন

ঝিকরগাছায় রাস্তা পাকাকরনের শুভ উদ্বোধন করেন এমপি নাসির উদ্দীন

 

আব্দুল জব্বার, স্টাফ রিপোর্টার:যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলার গদখালী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ কর্তৃক আয়োজিত শিমুলিয়া কামারপাড়া মিশন রোড হইতে গদখালী পর্যন্ত পাঁকা রাস্তার শুভ উদ্বোধন করেন, যশোর-২ (চৌগাছা-ঝিকরগাছা) আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা মেজর জেনারেল (অবঃ)  অধ্যাপক ডাঃ নাসির উদ্দীন। অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, চৌগাছা-ঝিকরগাছার এমপি নাসির উদ্দীন।  

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, ঝিকরগাছা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ মনিরুল ইসলাম, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মোঃ সেলিম রেজা, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান লুবনা তাক্ষী, ঝিকরগাছা থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুল রাজ্জাক। উক্ত অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ শরিফুল ইসলাম।

সড়কে দুর্ঘটনা রোধ না করা হলে উন্নয়নের উদ্দেশ্য ব্যাহত হবে- জাফরুল্লাহ ইসলাম

 সড়কে দুর্ঘটনা রোধ না করা হলে উন্নয়নের উদ্দেশ্য ব্যাহত হবে- জাফরুল্লাহ ইসলাম
পটিয়ার কৃতি সন্তান জাফরুল্লাহ ইসলাম

সেলিম চৌধুরী স্টাফ রিপোর্টারঃ- পটিয়া - কর্ণফুলী মাইজভান্ডারি গাউসিয়া হক কমিটির সমন্বয়কারী বিশিষ্ট ব্যবসায়ি পটিয়ার কৃতি সন্তান জাফরুল্লাহ ইসলাম এ প্রতিবেদকের সাথে আলাপকালে বলেছেন,

দেশের মহাসড়গুলোতে ডিভাইডার তৈরি করা হয়েছে। স্বল্পগতির যানবাহন নিষিদ্ধ করা হয়েছে। কিন্তু দুর্ঘটনা প্রতিরোধ করা সম্ভব হয়নি। বরং সড়ক দুর্ঘটনা উদ্বেগজনক হারে বেড়েই চলেছে। বেসরকারি সংস্থা যাত্রী কল্যাণ সমিতির হিসাব অনুযায়ী, নভেম্বরে দুর্ঘটনায় মৃত্যু হয়েছে ৪৮৬ জনের। দিনে গড়ে ১৬ জনের বেশি মানুষের প্রাণ যাচ্ছে সড়কে। দুর্ঘটনার কারণ বিশ্লেষণে দেখা যাচ্ছে, এসব মৃত্যুর কারণ ত্রুটিপূর্ণ সড়ক, গাড়ি ও অব্যবস্থাপনা। এক পরিসংখ্যানে দেখা গেছে, প্রায় ৪০ শতাংশ চালকেরই বৈধ ড্রাইভিং লাইসেন্স নেই। আবার বৈধ লাইসেন্স নিয়ে গাড়ি চালাচ্ছেন এমন চালকদের ৩১ শতাংশ কোনো অনুমোদিত ইনস্টিটিউট থেকে প্রশিক্ষণ নেননি। ফলে চালকদের বেশির ভাগই ট্রাফিক আইন সম্পর্কে সম্যক জ্ঞাত নন। আমাদের দেশে চালকদের বড় সীমাবদ্ধতা হচ্ছে শিক্ষাগত যোগ্যতা। শিক্ষাগত যোগ্যতা না থাকায় অনেকেই আধুনিক সড়ক নির্দেশনা বুঝতে অক্ষম। ফলে অনেক সময় দুর্ঘটনা ঘটে যায়। সড়ক দুর্ঘটনার এটাও একটা কারণ। আবার দেশের সড়ক-মহাসড়কে যেসব যানবাহন চলছে তার বেশির ভাগেরই ফিটনেস নেই। ফিটনেসবিহীন গাড়িও দুর্ঘটনার কারণ হয়। অন্যদিকে মহাসড়কের কোথাও কোথাও অবৈধ স্থাপনা গড়ে তুলে রাস্তার পাশের জায়গা সংকুচিত করে ফেলা হয়েছে। চালকদের মাদকাসক্তিও সড়ক দুর্ঘটনার আরেকটি বড় কারণ। গত অক্টোবরে জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস উদযাপন অনুষ্ঠানে মাদকাসক্ত অবস্থায় গাড়ি চালানো বন্ধে চালকদের ডোপ টেস্ট করানোর ব্যবস্থা নিতে বলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এর আগে রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে মালিক-শ্রমিকদের এক সভায় ঢাকা সড়ক পরিবহণ মালিক-শ্রমিক ঐক্য পরিষদের আহ্বায়ক খন্দকার এনায়েত উল্যাহ জানিয়েছিলেন, ১ ডিসেম্বর থেকে শুরু হবে পরিবহণ চালকদের ডোপ টেস্ট। এই পরীক্ষার মাধ্যমে চালকরা মাদকাসক্ত কিনা, তা রাস্তায়ই পরীক্ষা করা হবে। পরীক্ষায় কোনো চালক ধরা পড়লে তাকে সরাসরি জেলে পাঠানো হবে। কিন্তু চালকদের সেই ডোপ টেস্ট শুরু হওয়ার খবর পাওয়া যায়নি। টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা বা এসডিজি অর্জনের অন্যতম শর্ত সড়ক দুর্ঘটনা কমিয়ে আনা। যেকোনো মূল্যে সড়ক দুর্ঘটনা প্রতিরোধে উপযুক্ত ব্যবস্থা নিতে হবে। আমরা বরাবরই সড়ক দুর্ঘটনা নিয়ে কথা বলি, দুর্ঘটনার পেছনের কারণগুলো তুলে ধরার চেষ্টা করি এবং এগুলো সর্বজনস্বীকৃত। সংশ্লিষ্টদের কাছ থেকে দুর্ঘটনা রোধে প্রতিনিয়ত আশ্বাস পাওয়া যায়, ব্যবস্থা নেয়ার প্রতিশ্রুতি দেয়া হয়। তবে দুর্ঘটনার হার দেখলে সহজেই অনুমান করা যায়- সেগুলো বাস্তবায়নের রূপ কতটা দৃশ্যমান। পরিবহণ খাতে যদি ব্যবস্থাপনা ও শৃঙ্খলা আনা না যায় তাহলে দেশে অবকাঠামোগত উন্নয়নের যেসব কর্মকা- দেখা যাচ্ছে সেগুলো অনর্থক হয়ে দাঁড়াবে।

বঙ্গবন্ধু ছিলেন শোষিত ও অসহায় মানুষের পক্ষে

বঙ্গবন্ধু ছিলেন শোষিত ও অসহায় মানুষের পক্ষে

প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য প্রদান করছেন স্বপন ভট্টাচার্য


স্টাফ রিপোর্টার: পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য্য বলেছেন, বঙ্গবন্ধু ছিলেন শোষিত ও অসহায় মানুষের পক্ষে। তিনি বাংলাদেশের অবহেলিত মানুষের জীবন যাত্রার মান উন্নয়নের জন্য সমবায় ভিত্তিক একটি সমাজ গড়তে চেয়েছিলেন। দেশের কৃষক, তাঁতী, কামার, কুমার, জেলে এরকম বঞ্চিতদেরকে ঐক্যবদ্ধ করে তাদের জীবন যাত্রার মান উন্নয়নের জন্যে তিনি সমবায়ের উপর নির্ভর করছিলেন। বৃহস্পতিবার দুপুরে খুলনার ডুমুরিয়া উপজেলার আমভিটা এলাকায় একটি সমবায়ী সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রতিমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

উপজেলা সমবায় অধিদফতরের আয়োজনে জনতা পিকনিক কর্নারে অনুষ্ঠিত সভায় সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার আবদুল ওয়াদুদ। এসময়ে বিশেষ অতিথি ছিলেন পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের সচিব রেজাউল আহসান, সমবায়ের নিবন্ধক ও মহাপরিচালক আমিনুল ইসলাম ও খুলনা বিভাগীয় যুগ্ম নিবন্ধক মিজানুর রহমান। এসময় বক্তব্য দেন জেলা সমবায় কর্মকর্তা জয়ন্তি অধিকারী, জেলা সমবায় নিবন্ধক তরিকুল ইসলাম, উপজেলা সমবায় কর্মকর্তা এফএম সেলিম আখতার, জনতা সমিতির প্রতিষ্ঠাতা গোলাম কুদ্দুস, সফল উদ্যেক্তা চন্দ্রিমা মন্ডল, দিপংকর মন্ডল প্রমুখ। প্রতিমন্ত্রী পরে সুবিধা বঞ্চিত ৮/১০ জন নারীদের দুগ্ধ খামার পরিদর্শন করেন।

পদ্মা সেতু এখন দৃশ্যমান!

পদ্মা সেতু এখন দৃশ্যমান!

নিউজ ডেস্ক:শেষ হয়েছে পদ্মা সেতুর ৪১টি স্প্যান বসানোর কাজ। কাঠখড়, ঘাত-প্রতিঘাত, গুজব, আরও কত বাধা পেরিয়ে দৃশ্যমান হলো ৬ দশমিক ১৫ কিলোমিটারের সেতুটি। এতে নৌপথের ভোগান্তি থেকে মুক্তি পেতে যাচ্ছে দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের ২১ জেলার মানুষ। বিজয়ের মাসে সর্বশেষ স্প্যানটি বসানোর মাধ্যমে এ যেন আরেকটি বিজয় লাভ করলো বাংলাদেশ।

সেতু দৃশ্যমান হওয়ায় আনন্দ প্রকাশ করে শরীয়তপুর সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি অ্যাডভোকেট মুরাদ হোসেন মুন্সী বলেন, প্রথম স্প্যানটি বসানোর সময় আমার দেখার সৌভাগ্য হয়েছিল। আমি সেদিন থেকে আশাবাদী ছিলাম, কবে শেষ হবে স্প্যান বসানোর কাজ। আজ স্প্যান বসানো শেষ হলো। অল্প সময়ের মধ্যে পদ্মা সেতু চালু হবে। এজন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জানাই। যিনি সম্পূর্ণ নিজ অর্থায়নে বিশ্বব্যাংককে চ্যালেঞ্জ করে দেখিয়ে দিলেন আমরা পারি পদ্মার বুকে সেতু করতে। মনে হচ্ছে বিজয়ের মাসে আরেকটি বিজয়।’

শরীয়তপুর জেলা আওয়ামী লীগের আইনবিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আবুল কালাম আজাদ বলেন, ‘আমাদের দীর্ঘদিনের প্রতীক্ষিত আকাঙ্ক্ষার বিষয় হলো পদ্মা সেতু। আজ সবশেষ স্প্যানটি বসলো। পুরোপুরি সংযোগ স্থাপনের মাধ্যমে দৃশ্যমান হলো পদ্মা সেতু। আমাদের ইচ্ছা ছিল, পদ্মা সেতু দিয়ে ঢাকা যাব। এখন ইচ্ছা পূরণের পালা।’

সিনিয়র অ্যাডভোকেট ও লেখক আলী আহম্মদ খান বলেন, ‘আমি প্রথমে ধন্যবাদ দেব আমাদের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে। কত বড় সাহসী ও কত বড় কলিজা থাকলে বিশ্বব্যাংকের সঙ্গে চ্যালেঞ্জ করে পদ্মা সেতু করে। সেতুটি চালু হলে দক্ষিণ-উত্তরবঙ্গের সবার কর্মসংস্থান হবে। তৈরি হবে শিল্প ও কলকারখানা। এটা আমাদের আনন্দ ও গৌরবের।’

বৃহস্পতিবার (১০ ডিসেম্বর) দুপুর ১২টা ২ মিনিটে ১২ ও ১৩ নম্বর পিলারের ওপর বসানো হয় ৪১তম স্প্যানটি। এর মাধ্যমেই দৃশ্যমান হলো ৬ দশমিক ১৫ কিলোমিটার দীর্ঘ পদ্মা সেতু।

আরো পড়ুন: দক্ষিণ -পশ্চিম অঞ্চলের দুই প্রান্ত এক হতে চলেছে!

শুধু তাই নয়, মাওয়া ও জাজিরা প্রান্তে বসানো স্প্যানগুলোতে রেলওয়ে স্ল্যাব ও রোডওয়ে স্ল্যাব বসানোর কাজও দ্রুতগতিতে চলমান। সেতুতে প্রয়োজন হবে ২ হাজার ৯১৭টি রোডস্ল্যাব। এরই মধ্যে এক হাজার ২৩৯টিরও বেশি স্ল্যাব বসানো হয়েছে। রেলওয়ের জন্য প্রয়োজন হবে ২ হাজার ৯৫৯টি রেলস্ল্যাব। যার মধ্যে এ পর্যন্ত এক হাজার ৮৬০টিরও বেশি বসানো হয়েছে।

উল্লেখ্য, ২০১৪ সালের ডিসেম্বরে সেতুর নির্মাণকাজ শুরু হয়। ২০১৭ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর ৩৭ ও ৩৮ নম্বর পিলারে প্রথম স্প্যান বসানো হয়। প্রথম স্প্যান থেকে শুরু করে ৩৯তম স্প্যান বসানো পর্যন্ত সময় লেগেছে তিন বছরের ওপর।৬ দশমিক ১৫ কিলোমিটার দীর্ঘ এই বহুমুখী সেতুর মূল আকৃতি হবে দোতলা। কংক্রিট ও স্টিল দিয়ে নির্মিত হচ্ছে পদ্মা সেতুর কাঠামো। সেতুর উপরের অংশে যানবাহন ও নিচ দিয়ে চলবে ট্রেন।

সাতক্ষীরা'র কলারোয়ায় সড়ক দুর্ঘটনায় মাদরাসা ছাত্র নিহত

সাতক্ষীরা'র কলারোয়ায় সড়ক দুর্ঘটনায়  মাদরাসা ছাত্র নিহত
সাতক্ষীরা'র কলারোয়ায় সড়ক দুর্ঘটনায়  মাদরাসা ছাত্র নিহত

আজহারুল ইসলাম সাদী, স্টাফ রিপোর্টারঃসাতক্ষীরার কলারোয়ায় সড়ক দুর্ঘটনায় এক মাদ্রাসা ছাত্র নিহত হয়েছে।বৃহস্পতিবার (১০ডিসেম্বর) বিকাল সাড়ে ৫টার দিকে উপজেলার রায়টা-কুশোডাঙ্গা রোড়ে এ দূর্ঘটনাটি ঘটেছে।

প্রক্ষ্যদর্শীরা জানান, নতুন একটি অ্যাপাচি মোটর বাইক নিয়ে দ্রুতগতিতে রায়টা- কুশোডাঙ্গা রোড দিয়ে যাচ্ছিলো দুই যুবক।এ সময় বিপরীত দিক থেকে আসা দ্রত গতির একটি নছিমন তাদের সম্মুখ থেকে ধাক্কা দেয়।

এতে ঘটনাস্থলে মোটর সাইকেল চালকসহ দুইজন মাটিতে পড়ে যায়। তাদের আহত অবস্থায় উদ্ধার করে কলারোয়া সরকারী হাসপাতালে ভর্তি করা হলে কর্তব্যরত চিকৎসক উপজেলার রায়টা গ্রামের বিশ্বাস  পাড়া এলাকার আব্দুল খালেকের মাদরাসা পড়ুয়া ছেলে আরিফুল ইসলাম আরিফ (১৭) কে মৃত্যু ঘোষনা করেন। 

এসময় তার সাথে থাকা আহত অপর বন্ধু উপজেলার মেহমানপুর গ্রামের জাহাঙ্গীর হোসেন (২০) কে উন্নত চিকিৎসার জন্য সাতক্ষীরায় রেফার করেন। এঘটনার পরে ঘাতক নছিমন চালক ঘটনা স্থান থেকে পালিয়ে যায় বলে জানা যায়।কলারোয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বিষয় টি নিশ্চিত করেছন।

দেবহাটা উপজেলা পরিষদ এর উপ নির্বাচন শান্তিপূর্নভাবে সম্পন্ন নৌকার প্রার্থী এগিয়ে

দেবহাটা উপজেলা পরিষদ এর উপ নির্বাচন শান্তিপূর্নভাবে সম্পন্ন নৌকার প্রার্থী এগিয়ে

 

আজহারুল ইসলাম সাদী, স্টাফ রিপোর্টারঃদু'একটি বিচ্ছিন্ন ঘটনা ছাড়াই সুষ্ঠ ও শান্তিপূর্ন ভাবে শেষ হয়েছে, দেবহাটা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদের উপ নির্বাচনের ভোটগ্রহন।

৪০টি কেন্দ্রের মধ্যে কেবলমাত্র সখিপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে আ'লীগ সমর্থিত প্রার্থী আলহাজ্ব মুজিবর রহমান এবং আনারস প্রতিকের প্রার্থী আলহাজ্ব রফিকুল ইসলামের সমর্থকদের মধ্যে উত্তেজনা সৃষ্টি হওয়ায় ওই কেন্দ্রটির ভোটগ্রহন স্থগিত করে প্রশাসন। 

বৃহষ্পতিবার (১০ ডিসেম্বর)  সকাল ৯টা থেকে শুরু হয়ে একটানা উৎসব মুখর পরিবেশে বিকাল ৫টা পর্যন্ত চলে ভোটগ্রহন। 

ভোট গ্রহণ শেষে নৌকার প্রার্থী আলহাজ্ব মুজিবুর রহমান ২৪.৮০৩ ভোট পেয়ে এগিয়ে আছেন, তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আনারস প্রতিক নিয়ে আলহাজ্ব রফিকুল ইসলাম পেয়েছেন ১৩.৩৪৭ ভোট।

টাঙ্গাইলের মধুপুরে বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস সামাদ এর নাগরিক সংবর্ধনা

টাঙ্গাইলের মধুপুরে বীর মুক্তিযোদ্ধা  আব্দুস সামাদ এর নাগরিক সংবর্ধনা


আঃ হামিদ মধুপুর প্রতিনিধিঃ টাঙ্গাই্লের মধুপুরে  ১০ ডিসেম্বর মধুপুর পাক হানাদার মুক্ত দিবস উৎযাপন উপলক্ষে হোটেল আদিত্যের সামনে বৃহস্পতিবার(১০ ডিসেম্বর) বিকেলে মধুপুর পাক হানাদার মুক্ত দিবস উৎযাপন কমিটি আয়োজনে  মধুপুর মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস সামাদকে নাগরিক সংবর্ধনা প্রদান করেন। উক্ত নাগরিক সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সরকার সহিদ, আহবায়ক মধুপুর পাক হানাদার মুক্ত দিবস উদযাপন কমিটি এবং সাবেক মেয়র মধুপুর পৌরসভা টাঙ্গাইল। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন খন্দকার আনোয়ারুল হক, সাবেক  জাতীয় সংসদ সদস্য মধুপুর ধনবাড়ি। 
অনুষ্ঠানের সঞ্চালনায় ছিলেন হুমায়ুন কবির তালুকদার, পাক হানাদার মুক্ত দিবস উৎযাপন কমিটি এবং সাবেক চেয়ারম্যান গোলাবাড়ি ইউপি। বক্তব্য রাখেন হাবিবুল্লাহ ফকির,লতিফ পান্না,মেহেদী হাসান মিন্জু,শহিদুল ইসলাম, রিজভী আহমেদ প্রমুখ। এসময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মধুপুর পাক হানাদার মুক্ত দিবস কমিটির অন্যান্য নেতৃবৃন্দও মধুপুর ধনবাড়ী এলাকার জনসাধারণ। অনুষ্ঠান শেষে মধুপুরের গর্ব বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস সামাদকে মুক্তিযোদ্ধাদের পক্ষ থেকে সন্মাননা ক্রেস্ট ও ফুলেল শুভেচছা দেওয়া হয়।


মোহনগঞ্জে ট্রেনের নীচে কাটা পড়ে নিহত-১

মোহনগঞ্জে ট্রেনের নীচে কাটা পড়ে নিহত-১
মোহনগঞ্জে ট্রেনের নীচে কাটা পড়ে নিহিত-১

আজহারুল ইসলাম মোহনগঞ্জ প্রতিনিধি নেত্রকোনাঃ নেত্রকোনার মোহনগঞ্জে ট্রেনের নীচে কাটা পড়ে প্রাণেষ চন্দ্র সরকার (৩৫) নামে এক ব্যাক্তি নিহিত হয়েছেন। 

বৃহস্পতিবার বিকালে পৌর এলাকার কাজিয়াটি ব্রীজের পুর্ব পাশে এ ঘটনা ঘটেছে। 
মোহনগঞ্জ হইতে ঢাকা গামী  মহুয়া কম্পিউটার ট্রেনের নীচে কাটা পড়ে নিহিত হন প্রাণেষ চন্দ্র সরকার, তিনি উপজেলার ১নং বড় কাশিয়া বিরামপুর ইউনিয়নের বড় কাশিয়া গ্রামের নিখিল চন্দ্র সরকারের ছেলে। 

স্থানীয় ও পুলিশ সুত্রে জানাযায়, প্রাণেষ চন্দ্র সরকার মানসিক ভারসাম্যহীন ছিল,রেল লাইনের উপর থেকে লোকজন লক্ষ করে  ঢিল ছুঁড়তে ছিল এমন সময় মোহনগঞ্জ রেল ষ্টেশন হতে ছেড়ে আসা ঢাকা গামী  মহুয়া কম্পিউটার ট্রেনের নীচে কাটা পড়ে  নিহিত হন তিনি। 
 রেলওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ সমর বড়ুয়া ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, নিহিতের পরিবারের কাছ থেকে কোন অভিযোগ নেই, রেলওয়ের উদ্ধর্তন কর্মকর্তাদের সাথে কথা বলেছি, পরিবারের কাছে লাশ হস্তান্তরের প্রস্তুতি চলছে।

বর্ণাঢ্য আয়োজনে রাজধানীতে ভোলা জেলা মুক্ত দিবস ও স্বাধীনতার সুবর্নজয়ন্তী পালন

বর্ণাঢ্য আয়োজনে রাজধানীতে  ভোলা জেলা মুক্ত দিবস ও স্বাধীনতার সুবর্নজয়ন্তী পালন
বর্ণাঢ্য আয়োজনে রাজধানীতে  ভোলা জেলা মুক্ত দিবস ও স্বাধীনতার সুবর্নজয়ন্তী পালন
জবি প্রতিনিধি:
বর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্যে দিয়ে রাজধানীতে ভোলা জেলা মুক্ত দিবস ও স্বাধীনতার সুবর্নজয়ন্তী পালন করেছে ঢাকাস্থ ভোলাবাসি।  বৃহস্পতিবার (১০ ডিসেম্বর) সন্ধ্যায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বাধীনতা ভাস্কর্য থেকে একটি র‍্যালি বের করা হয়ে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে শেষ হয়। এ সময় ৭১ এর মহান মুক্তিযুদ্ধে নিহত শহীদদের স্মরণে মোমবাতি প্রজ্জ্বলন ও ফানুষ উড়ানো হয়। 

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাবেক সহ সম্পাদক ফখরুল শাহীনের উদ্যোগে আয়োজিত এ অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাবেক সহ সভাপতি মাকসুদ রানা মিঠু, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক সিনিয়র সহ সভাপতি সাখাওয়াত হোসেন রাসেল।

এ সময় বক্তারা বলেন, ৭১ সালে যে মহান উদ্দশ্য নিয়ে এ দেশ স্বাধীন হয়েছে তা আজও বান্তবায়ন হয়নি। আজও দেশের রন্জে রন্জে পাকিস্তানের প্রেতাত্মারা ভর করে আছে। আজ  যখন পুরো ভাঙ্গালীজাতী  স্বাধীনতার সুবর্নজয়ন্তী পালন করার জন্য প্রস্কুত তখনই  স্বাধীনতার ঘোসক হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির জনক  বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্যে আঘাত করেছে। তারা জাতির পিতার ভাস্কর্যে আঘাত করেনি, আঘাত করেছে এ দেশের স্বাধীনতায়, ওরা আঘাত করেছে স্বাধীন মানচিত্রে। তাই আমরা চাই সারা দেশে সরকারী ভাবে প্রতিটি জেলা, উপজেলা, থানা, ও ইউনিয়ন প্রর্যায়ে বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য নির্মান করতে হবে।

র‍্যালিতে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা মহানগর দক্ষিন ছাত্রলীগের তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক সাখাওয়াত আরেফিন, কবি নজরুল শাখা ছাত্রলীগের মানব সম্পদ উন্নয়ন বিষয়ক সম্পাদক মাইনুল খান ও সহ-সভাপতি হুমায়ুন কবির হিমু ও জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সম্পাদক ইমরুল নিয়াজ সহ ঢাকাস্ত ভোলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী ও ব্যবসায়ীরা।

উল্লেখ্য, ১৯৭১ সালে ভোলাতেও চলে মুক্তিযুদ্ধের প্রস্তুতি। সরকারি স্কুল মাঠ, বাংলা স্কুল, টাউন স্কুল মাঠ ও ভোলা কলেজের মাঠের কিছু অংশে মুক্তিযুদ্ধের প্রশিক্ষণ শুরু হয়।
মুক্তিযোদ্ধাদের সঙ্গে পাকবাহিনীর সম্মুখ যুদ্ধ হয় ভোলার ঘুইংঘারহাট, দৌলতখান, বাংলাবাজার, বোরহানউদ্দিনের দেউলা ও চরফ্যাশন বাজারে।

১০ ডিসেম্বর মুক্তিযোদ্ধারা ভোলার অধিকাংশ এলাকা নিয়ন্ত্রণে নিয়ে যখন শহর নিয়ন্ত্রণের জন্য প্রস্তুতি নেন। ভোররাতে পাকিস্তানি হানাদাররা চারদিকে গুলি ছুড়তে থাকে। তখন মুক্তিযোদ্ধা কাজী জয়নাল ও ফিরোজের নেতৃত্বে ১৩ জনের একটি বাহিনী তাদের পেছন থেকে ধাওয়া করলে হানাদাররা ভোর ৫টায় ভোলার পুরান লাশ কাটা ঘরের পাশে রাখা মরহুম ইলিয়াস মাস্টারের লঞ্চে চড়ে ভোলা থেকে পালিয়ে যান। ওই সময় তাদের গতিরোধ করার জন্য খালে গাছ ফেলে ব্যারিকেড দিয়েছিল মুক্তিকামী জনতা। পাক হানাদারদের বহনকারী ওই কার্গো লঞ্চটি চাঁদপুরের মেঘনায় ডুবে ওই হানাদার বাহিনীর অধিকাংশ সদস্যের মৃত্যু ঘটে বলে জানা যায়। এছাড়াও মুক্তিযোদ্ধাদের গুলিতে কয়েকজন পাকিস্তানি সেনা নিহত হয়। সেদিন পাকিস্তানি সেনাদের পালিয়ে যাওয়ার মধ্য দিয়ে ভোলা হানাদারমুক্ত হয়।

১৯৭১ সালের ১০ ডিসেম্বর সকাল ১০টার দিকে ভোলার লড়াকু সন্তানরা তখনকার ভোলা এসডিও অফিস বর্তমান জেলা হিসাব রক্ষণ অফিসের ছাদে উঠে পাকিস্থানের পতকা পুড়িয়ে, উড়িয়ে দিয়েছিলেন লাল সবুজের স্বাধীন বাংলার জাতীয় পতাকা।

খুলনা বিভাগীয় সেরা সাংবাদিক শাহ আলমকে ফুলের শুভেচ্ছা

খুলনা বিভাগীয় সেরা সাংবাদিক শাহ আলমকে ফুলের শুভেচ্ছা


খোন্দকার আব্দুল্লাহ বাশার,খুলনা ব্যুরো প্রধানঃদৈনিক আমার সংবাদ পত্রিকার ২০২০ সালের খুলনা বিভাগের সেরা প্রতিনিধিকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন প্রেসক্লাব কালীগঞ্জের নেতৃবৃন্দরা।

বৃহস্পতিবার বিকালে প্রেসক্লাব কালীগঞ্জের অস্থায়ী কার্যলয়ে তাকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান কালীগঞ্জের সাংবাদিকরা। এসময় উপস্থিত ছিলেন প্রেসক্লাবের সভাপতি জাকারিয়া হোসেন, সাধারণ সম্পাদক তোফাজ্জল হোসেন, উপদেষ্টা সোহেল আহমেদ, শিপলু জামান,অর্থ ও দপ্তর সম্পাদক  তানজির রহমান, মতিয়ার রহমান, নাজমুল হোসেন, স্বাধীন ইসলাম প্রমুখ।

এসময় বক্তারা শাহ আলমের এই অর্জনকে প্রেসক্লাবের সাফল্যের মুকুটে অরেকটি পালক যুক্ত হয়েছে বলে জানান, সকলে তার সাংবাদিকতার সাফল্য কামনা করেন এবং সৎ নিষ্ঠাবান হিসাবে পেষাগত দায়িত্ব পালনের জন্য বলেন।

মহান বিজয় মাস উপলক্ষে প্রীতি ক্রিকেট ম্যাচ

মহান বিজয় মাস উপলক্ষে  প্রীতি ক্রিকেট ম্যাচ


খাদেমুল ইসলাম রাজ, বীরগঞ্জ উপজেলা প্রতিনিধিঃ মহান বিজয় মাস উপলক্ষে প্রীতি ক্রিকেট ম্যাচ বীরগঞ্জ থানা পুলিশ একাদশ বনাম পলাশবাড়ী প্ল্যান বি পলাশবাড়ী স্কুল মাঠে অনুষ্ঠিত হয় আজ দুপুর ২ঃ০০টায়। বীরগঞ্জ থানার পুলিশ ক্রিকেট দল টসে জিতে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নেন।শুরুতে ব্যাট করে বীরগঞ্জ থানা পুলিশ একাদশ ১৪ ওভারে  সংগ্রহ করে ৭ উইকেটে ১৩৬ রান।জবাবে পলাশবাড়ী প্ল্যান বি   ক্রিকেট দল ১৩৭ রানে টার্গেটে খেলতে নেমে ১৪ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে ১১৪ রান সংগ্রহ করে। বীরগঞ্জ থানা পুলিশ একাদশ ২২ রানে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করেছেন।
বীরগঞ্জ থানা পুলিশ একাদশ দলের ম্যান অভ দ্যা ম্যাচ জাহিদ   নির্বাচিত হয়েছেন। 


বীরগঞ্জ থানা পুলিশ একাদশ দলের অধিনায়ক মো ওয়ারেস (অতিরিক্ত পুলিশ সুপার,সার্কেল অফিসার)তিনি বলেন পতিটি ইউনিয়নে যুবকদের সাথে খেলাধুলা করি তাহলে যুবক ছেলেদের কিশোর গ্যাং থেকে  ফিরে আসবে বলে আমি মনে করি।পলাশবাড়ী প্ল্যান -বি এর 
সভাপতি আশা বলেন, মাঠে খেলাধুলা হবে, আশেপাশের সবাই আসবে খেলতে, আর পলাশবাড়ী কে চিনবে খেলাধুলার মাধ্যমে,পলাশবাড়ী কে আমরা পলাশবাড়ীর আগের ঐতিহায্য ফিরিয়ে আনার চেষ্টা করবো।
সেখানে উপস্থিত ছিলেন স্টুডেন্টস এসোসিয়েশন অব পলাশবাড়ী (SAP) এর নেতৃবৃন্দ এবং সাংবাদিক বৃন্দ প্রমুখ।

ভাস্কর্য ইস্যুতে দলের পাশে নেই আ.লীগের আলেম কর্মীরা?

ভাস্কর্য ইস্যুতে দলের পাশে নেই আ.লীগের আলেম কর্মীরা?

বেলাল উদ্দিন সিনিয়র স্টাফ রিপোর্টারঃ
ক্ষমতাসীন দলের আওয়ামী লীগের ১৯টি সম্পাদকীয় উপকমিটি রয়েছে। সেই ১৯টি উপকমিটির একটি ধর্মবিষয়ক উপকমিটি। দেশের কওমি ও আলিয়া মাদরাসার কয়েকজন শীর্ষস্থানীয় আলেম-উলামাদের নিয়ে ২০১৭ সালে ক্ষমতাসীন দলের এ উপকমিটি গঠিত হয়। 

ধর্ম উপকমিটির চেয়ারম্যান করা হয় উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য খন্দকার গোলাম মাওলা নকশবন্দিকে। আর সদস্য সচিব হিসেবে দায়িত্বে ছিলেন তৎকালীন ধর্ম সম্পাদক শেখ আব্দুল্লাহ।

খন্দকার গোলাম মাওলা নকশবন্দি ও শেখ আব্দুল্লাহ'র  আকিদাগত  মতের মিল না হওয়ায় দুটি পৃথক পৃথক কমিটি করেন তারা। দুই কমিটিতেই রয়েছেন দেশের শীর্ষস্থানীয় ইসলামি চিন্তাবিদগ।

২১তম জাতীয় সম্মেলনে ধর্ম সম্পাদকের পদ থেকে বাদ পড়েন শেখ আব্দুল্লাহ। তিনি কওমি অঙ্গনে পরিচিত ছিলেন। ছিলেন কওমি মাদরাসার ছাত্রও। গত জুন মাসে ১৩ তারিখে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেন শেখ আব্দুল্লাহ।

দ্বিতীয় মেয়াদেও ধর্ম উপকমিটির চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পান সুন্নীপন্থি হিসেবে পরিচিত খন্দকার গোলাম মাওলা নকশবন্দি। তবে আওয়ামী লীগের ২১তম জাতীয় সম্মেলনের প্রায় ১ বছর শূণ্য ছিলো ধর্ম সম্পাদকের পদ। এরপর সেই শূন্য পদে মনোনীত করা হয় কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সিরাজুল মোস্তফাকে। 

বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠাতা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্য নির্মাণের বিরোধিতায় মাঠে নেমেছে দেশের কওমি মাদরাসাভিত্তিক সংগঠন হেফাজতে ইসলামসহ কয়েকটি ইসলামি রাজনৈতিক দলের নেতারা। 

ভাস্কর্যকে মূর্তির সঙ্গে তুলনা করে তা নির্মাণ 'হারাম' বলেও ফতোয়া দিচ্ছেন দেশে শীর্ষস্থানীয় আলেম-ওলামাদের একটি অংশ। কওমিপন্থি আলেমদের মতের সঙ্গে একমত পোষণ করেছেন সুন্নীপন্থি আলেমরাও। ইতোমধ্যে কুষ্টিয়ায় নির্মাণাধীন বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভেঙেছে কওমি মাদরাসার কয়েকজন শিক্ষার্থী। ভাস্কর্য ইস্যুতে দেশের চলমান অস্থিরতা ও সংকট নিরসনের জন্য সরকারপ্রধানের সঙ্গেও বসতে চান আলেমদের একটি অংশ।

তবে ভাস্কর্য নিয়ে হেফাজতে ইসলামের অবস্থানের বিরুদ্ধে আন্দোলনে নেমেছেন ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগসহ সাংস্কৃতিক ও সামাজিক সংগঠনের নেতারা। বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ইস্যুতে যখন গরম দেশের ইসলামি রাজনৈতিক অঙ্গন তখন এই ইস্যুতে 'টু শব্দও করেননি' ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের ধর্ম উপকমিটির  আলেম-উলামারা। অথচ সারাদেশ থেকে মুজিবীয় আদর্শিক পরিবার থেকে বাছাই করে দেশ, জাতি ও দলের স্বার্থে ধর্ম উপকমিটিতে আলেম-ওলামাদের অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছিলো। 

দলের এই পরিস্থিতিতে একটি শব্দও খরচ করেননি উপকমিটির সদস্য আলেম ও ইসলামি চিন্তাবিদগণ। তাহলে ধর্ম উপকমিটির আলেম-উলামাদের কাজ কী? তাদের কাজ কি রাষ্ট্রীয় ইফতার মাহফিলে অংশ নেয়া; বিশেষ বিশেষ দিনে প্রধানমন্ত্রী ও রাষ্ট্রপতির অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত হয়ে উপস্থিত হওয়ার মধ্যেই কি সীমাবদ্ধ তাদের ভূমিকা?  

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ধর্ম উপকমিটির সদস্যদের অনেকেই নিজেকে পরিচয় দিয়ে সরকারের ধর্ম মন্ত্রণালয়, ইসলামিক ফাউন্ডেশনসহ বিভিন্ন দফতর থেকে নানা সুবিধা নিয়ে থাকেন। 

বঙ্গবন্ধু ভাস্কর্য ইস্যুতে দেশের রাজনৈতিক অঙ্গনে যে বির্তকের ঝড় উঠেছে এ বিষয়ে আওয়ামী লীগের ধর্ম উপকমিটির সাবেক সদস্য ও ইসলামি চিন্তাবিদদের সঙ্গে কথা বলার চেষ্টা করেছে । বঙ্গবন্ধু ভাস্কর্য ইস্যুতে মুঠোফোনে কথা বলার চেষ্টা করলে তাদের অনেকেই এ বিষয়ে কথা বলতে অপারগতা প্রকাশ করেন। তবে সরাসরি বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যের বিরোধিতা করেন ধর্ম উপকমিটির সাবেক সদস্য ও জামেয়া দারুল উলুম মাদরাসার প্রিন্সিপাল মুফতি রেজাউল হক মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ।  

বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যের বিষয়ে প্রশ্ন শুনেই মিটিংয়ে থাকার ব্যস্ততা দেখিয়ে ফোন কেটে দেন ধর্ম উপকমিটির সাবেক সদস্য ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আরবি বিভাগের চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. মোহাম্মদ ইউসুফ। 
ধর্ম উপকমিটির সাবেক সদস্য শায়খুল হাদীস মাওলানা ওয়াহীদুযযামান। তিনি জামিয়া আরাবিয়া আশরাফিয়া এতিমখানার প্রিন্সিপাল। আলেমদের একটি অংশ বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য নির্মাণ হারাম ফতোয়ার দিয়েছে এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে তিনি  বলেন, 'ধর্মের বিষয় আলেমরা ভালো জানেন। আলেমরা যা বলবে তা আমরা শ্রদ্ধার সঙ্গে গ্রহণ করবো। তবে শুধু বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য নির্মাণের বিরোধিতার বিষয়টি আমরা গবেষণা করছি। আর যারা বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করতে চায় তাদের আমরা নজরে রাখছি।'
ধর্ম উপকমিটির সাবেক সদস্য, শায়খুল হাদিস মাদরাতুল রহমানের শিক্ষক মাওলানা তাজুল ইসলাম পরে কথা বলবে বলে ফোনের লাইন কেটে দেন। 

বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যের প্রসঙ্গে মুঠোফোনে কথা বলতে চান না হাফেজ মাওলানা মাজহারুল ইসলাম। তিনিও ধর্ম উপকমিটির সাবেক সদস্য এবং আম্বরশাহী জামে মসজিদের খতিব। আওয়ামী লীগের ধর্ম সম্পাদক হওয়ার জন্য লবিং করেছিলেন  এই মাওলানা। তিনি বলেন, 'ভাস্কর্য ইস্যুতে আমি সরাসরি কথা বলতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করি।' এরপরই লাইনটি কেটে দেন তিনি। 

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ইস্যুতে নীবর থাকা এই সমস্ত আলেম উলামা ও ইসলামি চিন্তাবিদগণ পুনরায় ধর্ম উপকমিটিতে জায়গা পেতে দৌড়ঝাঁপও শুরু করেছেন। 

বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যের ইস্যুতে সাংবাদিক পরিচয় পেয়ে ফোনে কথা বলতে চাননি সুন্নিপন্থি বলে পরিচিত আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য ও ধর্ম উপকমিটির চেয়ারম্যান খন্দকার গোলাম মাওলা নকশবন্দিও।
তবে বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ইস্যুতে শুরু থেকেই মাঠে ছিলো আওয়ামী লীগ থেকে স্বীকৃতি না পাওয়া সংগঠন বাংলাদেশ আওয়ামী ওলামা লীগ। ওলামা লীগ নেতারা বলেছে, ভাস্কর্য আর মূর্তির মধ্যে পার্থক্য রয়েছে। ভাস্কর্যকে মূর্তি বলা জ্ঞানের স্বল্পতা ও দৃষ্টিভঙ্গির সমস্যা। ভাস্কর্য হচ্ছে একটি শিল্প যা নগরের সৌন্দর্য বর্ধন করে। আর মূর্তি বানানো হয় ধর্মীয় বিশ্বাস থেকে উপাসনা করার জন্য। ভাস্কর্য আর মূর্তি এক নয়।

বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যবিরোধীরা ধর্মের দৃষ্টিকোণ থেকে নয়, রাজনৈতিক স্বার্থেই ভাস্কর্যের বিরোধিতা করছে। ভাস্কর্য আর মূর্তি এক নয় এ বিষয়ে ওলামা লীগের নেতারা রাজধানীতে বিভিন্ন সময় লিফলেট বিতরণ করেছেন বললেন?

বাংলাদেশ প্রেস ক্লাব সিংড়া উপজেলা শাখার কমিটি গঠন

বাংলাদেশ প্রেস ক্লাব সিংড়া উপজেলা শাখার কমিটি গঠন


রাজু আহমেদ, নাটোর: বাংলাদেশ প্রেস ক্লাব সিংড়া উপজেলা শাখার আহবায়ক কমিটি গঠন করা হয়েছে। এ উপলক্ষ্যে ১০ ডিসেম্বর বিকেল ৪ টায় সিংড়া মডেল প্রেস ক্লাবের সভাপতি রাজু আহমেদের সভাপতিত্বে এক সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ প্রেস ক্লাবের শিক্ষা ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ। 
বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন নন্দীগ্রাম প্রেস ক্লাবের সভাপতি নাজমুল হুদা। 

অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সিংড়া মডেল প্রেস ক্লাবের সহ-সভাপতি খলিল মাহমুদ, নন্দীগ্রাম প্রেস ক্লাবের দপ্তর সম্পাদক অদ্বৈত কুমার আকাশ, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক জিল্লুর রহমান রয়েল, সাহিত্য ও পাঠাগার সম্পাদক টিপু সুলতান, সাংবাদিক সামাউন আলী প্রমুখ। 

সভা শেষে রাজু আহমেদকে আহবায়ক, আনোয়ার হোসেনকে যুগ্ম আহবায়ক, খলিল মাহমুদকে যুগ্ম আহবায়ক, জুলহাজ কায়েমকে যুগ্ম আহবায়ক, রাকিবুল ইসলামকে সদস্য সচিব, রবিন খানকে সদস্য সাংগঠনিক ও লিটন আলীকে সদস্য অর্থ নির্বাচিত করে ৭ সদস্য বিশিষ্ট বাংলাদেশ প্রেস ক্লাব সিংড়া উপজেলা শাখার আহবায়ক কমিটি গঠন করা হয়।

মনিরামপুরের ডুমুরখালী বাজার কমিটির নির্বাচনে বিজয়ী সভাপতি আনিছুর, সেক্রেটারি রফিকুল

 মনিরামপুরের ডুমুরখালী বাজার কমিটির নির্বাচনে বিজয়ী সভাপতি  আনিছুর, সেক্রেটারি রফিকুল
 মনিরামপুরের ডুমুরখালী বাজার কমিটির নির্বাচনে বিজয়ী সভাপতি  আনিছুর, সেক্রেটারি রফিকুল

আব্দুল জব্বার, স্টাফ রিপোর্টার।।আইন শৃংখলার কঠোর নিরাপত্তার মধ‍্যে যশোরের মনিরামপুর উপজেলার ডুমুরখালী বাজার কমিটির নির্বাচন সম্পন্ন হয়েছে। নির্বাচনে সভাপতিি পদে ২জন ও সেক্রেটারিি পদে ২জন করে, মোট দুটি পদে ৪ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দিতা করেছে। বাজার সংলগ্ন ডুমুরখালী দাখিল মাদ্রাসায়, বৃহস্পতিবার দুপর ১২ টা থেকে বিরতীহীন ভাবে বিকাল ৪ টা পর্যন্ত ভোট গ্রহন চলে। 


বাজারের ১০৪ জন ব‍্যবসায়ী ভোটার তাদের পছন্দের প্রার্থীকে ভোট প্রয়োগ করেন। নির্বাচনের ফলাফলে জানা যায়, সভাপতি প্রার্থী আনিছুর রহমান চেয়ার প্রতীকে ৬৯ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন এবং প্রতিদ্বন্দি প্রার্থী বাবলুর রহমান চাকা প্রতীকে ৩৪ ভোট পেয়ে পরাজিত হয়েছেন। সেক্রেটারি প্রার্থী রফিকুল ইসলাম মাছ প্রতীকে ৬৩ ভোট পেয়ে, জয়ী হয়েছেন এবং প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী ষষ্টি রায় গোলাপফুল প্রতীকে ৪৩ ভোট পেয়ে পরাজিত হয়েছেন। 

ভোটগ্রহণে প্রিজাইটিং অফিসার ছিলেন, ডুমুরখালী দাখিল মাদ্রাসার সুপার মাওলানা শামসুর রহমান, সহকারী প্রিজাইটিং ছিলেন, মাওলানা আব্দুল কাদের ও মাস্টার হাফিজুর রহমান। নির্বাচন কমিশনের দায়িত্ব্ব্ব পালন করেছেন ডুমুরখালী গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা ও সাবেক চেয়ারম্যান হাতেম আলী সরদার ও সহকারী নির্বাচন কমিশনার বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস সোবাহান। আইন-শৃংখলার দায়িত্বে ছিলেন ঝাঁপা পুলিশ ক্যাম্পের এএসআই  মোয়াজ্জেম হোসেনসহ পুলিশ সদস‍্য বৃন্দ। 

এদিকে শেষ মুহূত্বে নির্বাচন দেখতে আসেন হরিহর নগর ইউনিয়ন আ,লীগের সভাপতি ও চেয়ারম্যান জহিরুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক রিপন ধরসহ নেতৃবৃন্দ।

নোবিপ্রবি শিক্ষার্থীদের ট্রান্সপোর্ট ফি, সিট রেন্ট ও ইলেকট্রিসিটি চার্জ মওকুফ

নোবিপ্রবি শিক্ষার্থীদের ট্রান্সপোর্ট ফি, সিট রেন্ট ও ইলেকট্রিসিটি চার্জ মওকুফ

নোবিপ্রবি প্রতিনিধিঃকরোনাভাইরাস(কভিড-১৯) শুরু হওয়ার সময় থেকে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত শিক্ষার্থীদের কোর্স রেজিস্ট্রেশনের অন্তর্ভুক্ত ট্রান্সপোর্ট ফি, আবাসিক শিক্ষার্থীদের সিট রেন্ট ও ইলেকট্রিসিটি চার্জ মওকুফ করেছে নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়(নোবিপ্রবি) প্রশাসন। বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার অধ্যাপক আবুল হোসেন স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের বিষয়টি জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, কতৃপক্ষের অনুমোদনক্রমে নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল বিভাগের শিক্ষার্থীদের অবগতির জন্য জানানো যাচ্ছে যে, কভিড-১৯ শুরু হওয়ার সময় থেকে পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত কোর্স রেজিস্ট্রেশনের  অন্তর্ভুক্ত ট্রান্সপোর্ট ফি, আবাসিক শিক্ষার্থীদের সিট রেন্ট ও ইলেকট্রিসিটি চার্জ মওকুফ করা হলো।

জবির ১৮ শিক্ষক পেলেন গবেষণা অনুদান

 জবির ১৮ শিক্ষক পেলেন গবেষণা অনুদান
জবি প্রতিনিধি:জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) ১৯ জন শিক্ষক পেয়েছেন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের বিশেষ গবেষণা অনুদান। তারা ২০২০-২১ অর্থবছরের জন্য নির্বাচিত হয়েছেন। এ অর্থবছরে মন্ত্রণালয়টির "বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি কর্মসূচি" খাত হতে এ বিশেষ গবেষণা অনুদান প্রদান করা হবে।

বৃহস্পতিবার (১০ ডিসেম্বর) এই বিষয়ে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের ওয়েবাসাইটে প্রকাশিত ফেলোশিপ ও অনুদান অংশের বিজ্ঞপ্তি থেকে এ তথ্য জানা যায়। ৫৭৯টি গবেষণা প্রকল্পের অনুদানের জন্য নির্বাচিতদের তালিকাও বিজ্ঞপ্তিতে প্রকাশ করা হয়েছে।

অনুদান প্রাপ্ত জবি শিক্ষকদের মধ্যে রয়েছেন রসায়ন বিভাগের অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ লোকমান হোসেন ও ভূগোল ও পরিবেশ বিভাগের সহকারী অধ্যাপক নাহরিন জান্নাত হোসেন, গণিত বিভাগের অধ্যাপক ড. মোঃ সরোয়ার আলম ও সহযোগী অধ্যাপক ড. মোস্তাক আহমেদ, একই বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. এস. এম. চপল হোসেন ও অধ্যাপক ড. মোঃ শরিফুল আলম।

আরো রয়েছেন রসায়ন বিভাগের অধ্যাপক ড. আবুল কালাম মোঃ লুৎফর রহমান ও সহকারী অধ্যাপক অপর্ণা সরকার, অধ্যাপক ড. মোঃ আমিনুল হক ও অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমান, সহযোগী অধ্যাপক ড. এ জে সালেহ আহাম্মদ ও সহকারী অধ্যাপক আবদুল আউয়াল, সহযোগী অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ জামির হোসেন ও সহযোগী অধ্যাপক ড. নাফিস আহমদ, বিজ্ঞান অনুষদের ডিন ও গণিত বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. রবীন্দ্রনাথ মন্ডল ও সহযোগী অধ্যাপক ড. রাবেয়া আক্তার, সহযোগী অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ আওলাদ হোসেন ও সহকারী অধ্যাপক মোঃ ইলিয়াস।

উল্লেখ্য, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের অধীনে ‘বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি’ বিষয়ক প্রকল্পের গবেষণার জন্য ১৯৯৭-১৯৯৮ অর্থবছর থেকে বিশেষ গবেষণা অনুদান দেওয়ার কার্যক্রম শুরু হয়। প্রতিবছর বায়োলজিক্যাল সায়েন্স, মেডিক্যাল সায়েন্স, এনভায়রনমেন্টাল সায়েন্স, ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড অ্যাপ্লাইড সায়েন্স, ফিজিক্যাল সায়েন্স ও ইন্টার-ডিসিপ্লিনিারি গ্রুপসহ ৬টি গ্রুপে গবেষণা অনুদান দেওয়া হয়।

ফেসবুক ম্যাসেঞ্জার নিয়ে ব্যবহারকারীরা বিপত্তিতে

 ফেসবুক ম্যাসেঞ্জার নিয়ে ব্যবহারকারীরা বিপত্তিতে

নিউজ ডেস্কঃ জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক ম্যাসেঞ্জার নিয়ে বিপত্তিতে পড়েছেন ব্যবহারকারীরা। মোবাইল ফোন কিংবা ল্যাপটপ-ডেস্কটপ সংস্করণে এই সমস্যা দেখা দিয়েছে। তবে এটি শুধুমাত্র বাংলাদেশের সমস্যা নয়, সারা বিশ্বে একই সমস্যা দেখা দিয়েছে বলে জানা গেছে।

ব্যবহারকারীদের কাছ থেকে জানা গেছে, গতকাল  বুধবার (৯ ডিসেম্বর) বিকাল হতে এই সমস্যা দেখা দিয়েছিল। তবে আজ এই সমস্যা ব্যাপক হারে বেড়েছে।

বাংলাদেশ, ভারত, যুক্তরাজ্য, ইউরোপ, আমেরিকাসহ বিভিন্ন দেশের ব্যবহারকারীরা অ্যাপটি ব্যবহার করতে সমস্যার মুখোমুখি হচ্ছেন। ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে অনেকেই বিরক্তি প্রকাশ করছেন এ ব্যাপারে।

প্রথমে দেখা যায়, বাংলায় টেক্সট করলে তা একগাদা জিজ্ঞাসা চিহ্নে রূপান্তরিত হয়ে যাচ্ছে। তবে ইংরেজিতে লিখলে এই সমস্যা হচ্ছিল না। মাঝেমধ্যে কানেকটিং... লেখাও দেখাচ্ছে।
 
আইটি বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ম্যাসেজিং সিস্টেমে সমস্যা থাকায় অনেকেই এ বিড়ম্বনায় পড়ছেন। বিশেষ করে যারা ফেসবুক কেন্দ্রীক অনইলাইন ব্যবসা করেন তাদের ক্ষেত্রে সমস্যাটা বেশি হচ্ছে। 
 

আইটিএ

ভারতীয় জলসীমায় ভাসতে থাকা বাংলাদেশী ফিসিং ট্রলারসহ ১৯ জেলে উদ্ধার

  ভারতীয় জলসীমায় ভাসতে থাকা বাংলাদেশী ফিসিং ট্রলারসহ ১৯ জেলে উদ্ধার
  ভারতীয় জলসীমায় ভাসতে থাকা বাংলাদেশী ফিসিং ট্রলারসহ ১৯ জেলে উদ্ধার
মোঃএরশাদ হোসেন রনি, মোংলাঃইঞ্জিন (প্রোফেলর) বিকল হয়ে ভাসতে ভাসতে বঙ্গোপসাগরের ভারতীয় জলসীমায় চলে যাওয়ার ১৫ দিনের মাথায় সেদেশীয় কোস্ট গার্ড ট্রলারটিকে উদ্ধার করে বাংলাদেশ কোস্ট গার্ডের কাছে হস্তান্তর করেছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে বাংলাদেশ কোস্ট গার্ডের পশ্চিম জোন সদর দপ্তরে (মোংলা) উদ্ধার হওয়া ওই ট্রলার ও জেলেদেরকে আনা হয়। এরপর ট্রলার মালিককে তার ট্রলার ও জেলেদেরকে বুঝিঁয়ে দিয়েছে মোংলা কোস্ট গার্ড। ট্রলার মালিক ও জেলেদের বাড়ী কক্সবাজারে।

কোস্ট গার্ড পশ্চিম জোনের (মোংলা) মিডিয়া কর্মকর্তা  লে: কমান্ডার এম হামিদুল ইসলাম জানান, চট্টগ্রাম থেকে এফ,ভি রানা নামের ফিসিং ট্রলারটিতে ১৯ জন জেলে গত ১৫ নভেম্বর গভীর সাগরে মাছ ধরার জন্য যায়। এরপর ২৩ নভেম্বর ট্রলারটি প্রোফেলর ভেঙ্গে গেলে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ভাসতে ভাসতে ভারতীয় জলসীমায় চলে যায়। প্রায় ১৫ দিন ধরে মাঝ সমুদ্রে ভাসার পর ভারতীয় কোস্ট গার্ড জাহাজ ভদর ওই ট্রলারটিকে দেখতে পায়। গত ৮ ডিসেম্বর ভারতীয় কোস্ট গার্ড ওই ট্রলারটিকে উদ্ধার করে ৯ ডিসেম্বর ভোর ৬টার সময় বঙ্গোপসাগরের বাংলাদেশ জলসীমায় টহলরত কোস্ট গার্ডের জাহাজ সোনার বাংলার কাছে হস্তান্তর করে। এরপর ১০ ডিসেম্বর দুপুরে ট্রলারটিকে বাংলাদেশ কোস্ট গার্ডের মোংলাস্থ পশ্চিম জোন সদর দপ্তরে আনার পর ফিসিং ট্রলার ও জেলেদেরকে ট্রলার মালিক মো: রানার কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। ট্রলার মালিক ও জেলেদের বাড়ী কক্সবাজারে বলে জানিয়েছে কোস্ট গার্ড।  

উক্ত ঘটনায় দুইটি দেশের পারস্পারিক সুসম্পর্ক শুধু জোরদারই করবে না বরং ভবিষ্যৎতে দুই দেশের কোস্ট গার্ডের পারস্পারিক সহযোগীতাও অনেকাংশে বৃদ্ধি পাবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন বাংলাদেশ কোস্ট গার্ডের পশ্চিম জোনের মিডিয়া কর্মকর্তা  লে: কমান্ডার এম হামিদুল ইসলাম। 

লোহাগড়া লক্ষ্মী ভান্ডার সমিতির নাম ভাঙ্গিয়ে লাখ লাখ টাকা আত্মসাৎ

 লোহাগড়া লক্ষ্মী ভান্ডার সমিতির নাম ভাঙ্গিয়ে  লাখ লাখ টাকা আত্মসাৎ

মোঃ আজিজুর বিশ্বাস ষ্টাফ রিপোর্টার নড়াইল।নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলার দিঘলিয়া ইউনিয়নের মাউলি গ্রামে লক্ষ্মী ভান্ডার সমিতির নাম করে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে বিউটি রানী । এই প্রতিষ্ঠিানটি দীর্ঘ এক বছর যাবত মানব কল্যানে কাজ করে যাচ্ছে। তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য আর্সেনিকমুক্ত গভীর নলকূপ স্থাপন এবং বৃক্ষরোপন।এই প্রতিষ্ঠানটি ২০১৯ সালে প্রতিষ্ঠা লাভ করে। 

বর্তমানে ৪১ জন সদস্য নিয়ে এই সমিতিটি গঠিত। এই সমিতির অধিকাংশ সদস্যই প্রবাসী। তারা সকলেই মানব কল্যানের জন্য প্রচুর অর্থ দিয়ে থাকেন। যে গভীর নলকূপ গুলো স্থাপন করা হচ্ছে সেগুলো খুবই স্বল্প মূল্যে প্রদান করা হয়। নলকূপ গ্রাহক মোঃ মিকাইল মোল্যা, রাজ্জাক হোসেন, হিমু খান, মোশারেফ খান, আলমগীর গাজী (টুকু মাষ্টার) তাদের সঙ্গে কথা হলে তারা বলেন, আমরা অতি অল্প মূল্যে এই নলকূপগুলো পেয়েছি যা আমরা কখনো কল্পনা করতে পারিনি। 

ভুক্তভোগী লিয়াকত বিশ্বাস গ্রাম লক্ষ্মীপাশা , উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ফারহানা ইয়াছমিন ইতি বলেন যে, বিউটি রানী ও ইমরান কে আমরা প্রায় এক লক্ষ টাকার উপর দিয়েছি সে লক্ষী ভান্ডারের সদস্যের কথা বলে গভীর নলকূপ প্রদান করবে বলে টাকা নেয়। কিন্তু ভুক্তভোগী লিয়াকত বিশ্বাস বলেন, বিউটি রানী আমাকে কোন টাকা ফেরত দেয়নি সে মিথ্যা কথা বলেছে। ভুক্তভোগীরা আরও বলেন, বিউটি রানী বলেন এই প্রতিষ্ঠানের সকল কর্মকর্তা আমি। বিউটি রানীর সঙ্গে সাংবাদিকদের মুঠোফোনে কথা হলে তিনি বলেন, আপনারা কেন আমাকে বিরক্ত করছেন। আমি কলের টাকা নিয়েছিলাম তা ফেরত দিয়েছি।

তাতে আপনাদের কি, আপনারা সাংবাদিকরা কেন আমাকে জালাচ্ছেন? আপনারা কি পেয়েছেন? সমিতির সভাপতি সসম্রাট কুমার ঘোষের সঙ্গে কথা হলে তিনি বলেন, মানব সেবাই আমাদের সমিতির মূল লক্ষ্য। সেকারনে মাননীয় এমপি মহোদয়ের গ্রীণ নড়াইল গড়ার লক্ষ্যে বৃক্ষরোপন ও আসের্নিকমুক সুপেয় পানির জন্য এই পরিকল্পনা গ্রহন করেছি। ইতিমধ্যে আমরা প্রায় একশ টির মত গভীর নলকূপ স্থাপন করেছি আগামীতে আমাদের এই কর্মসূচী অব্যাহত থাকবে। অতিব দুঃখের বিষয় একটি কুচক্রী মহল আমাদের এই প্রতিষ্ঠানটিকে ধ্বংস করার জন্য উঠেপড়ে লেগেছে। 

তার মধ্যে বিউটি রাণী গ্রাম রায়পাশা ও ইমরান চৌধুরী বিভিন্ন মহল থেকে লক্ষ্মী ভান্ডার সমিতির নাম করে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। সর্বশেষ সভাপতি সম্রাট ঘোষ বলেন আমরা এই প্রতারক চক্রের হাত থেকে রেহায় পেয়ে প্রতিষ্ঠানটিকে সুন্দর ভাবে পরিচালনা করে মানব সেবা অব্যাহত রাখতে চাই।

নড়াইল মুক্ত দিবস আজ

নড়াইল মুক্ত দিবস আজ
পুষ্প স্তবক  অর্পণ
মো: আজিজুর বিশ্বাস,ষ্টাফ রিপোর্টার নড়াইল।(১০ডিসেম্বর) নড়াইল মুক্ত দিবস।১৯৭১ সালের (১০ডিসেম্বর) এই দিনে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীকে পরাজিত করে নড়াইলকে শত্রুমুক্ত করেন বাংলার বীর মুক্তিযোদ্ধা"রা।

দিবসটি পালন উপলক্ষে জেলা প্রশাসন ও জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ নড়াইলের আয়োজনে জাতীয় ও মুক্তিযোদ্ধা পতাকা উত্তোলন,মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতিস্তম্ভ, বদ্ধভ’মি,গণকবর ও জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের মুর‌্যাল ও প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ এবং বিশেষ মোনাজাত অনুষ্ঠিত হয়।

জেলা প্রশাসন,পুলিশ প্রশাসন,জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ,নড়াইল প্রেসক্লাব,সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট, চিত্রা থিয়েটারসহ সরকারি-বে-সরকারি দপ্তর,বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের পক্ষ থেকে সকালে মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতিস্তম্ভ,বদ্ধভূমি,গণকবর ও জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়।

এ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক আনজুমান আরা,পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন পিপিএম (বার),অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো: ইয়ারুল ইসলাম,অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট সুমি মজুমদার,বাংলাদেশ আওয়ামী-লীগের জাতীয় পরিষদের সদস্য বীরমুক্তিযোদ্ধা অ্যাডভোকেট ফজলুর রহমান জিন্নাহ,নড়াইল পৌরসভার প্যানেল মেয়র মোঃ রেজাউল বিশ্বাস,সাবেক ডেপুটি কমান্ডার বীরমুক্তিযোদ্ধা অ্যাডভোকেট এস,এ,মতিন,জেলা পরিষদ সদস্য বীরমুক্তিযোদ্ধা সাইফুর রহামন হিলু,সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারি,সাংবাদিক,রাজনীতিবিদ,আইনজীবী,সাংস্কৃতিক কর্মিসহ বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ উপস্থিত ছিলেন।

কৃষকদের দাবী বীজ সংকটের স্থায়ী সমাধান করতে হবে

কৃষকদের দাবী বীজ সংকটের স্থায়ী সমাধান করতে হবে

মামুনুর রশিদ,দিনাজপুর প্রতিনিধিঃ দিনাজপুরে অনুষ্ঠিত গন শুনানীতে দেশের অবহেলিত উত্তরাঞ্চলের দারিদ্র পিড়িত কৃষি নির্ভর এ অঞ্চলের বীজ সংকটের স্থায়ী সমাধানসহ কৃষি  উপকরন সহজলভ্য এবং সরবরাহ নিশ্চিত করতে সরকারের কাছে দাবী জানিয়েছেন কৃষকরা।  


১০ ডিসেম্বর বৃহস্পতিবার সকাল ১১ টায় দিনাজপুর প্রেস ক্লাব মিলনায়তনে খাদ্য নিরাপত্তা নেট ওর্য়াক এর উদ্যোগে কৃষক শুনানীতে এ দাবী জানানো হয়। কৃষক নেতা বদিউজ্জামান বাদলের সভাপতিত্বে কৃষক শুনানীতে উপস্থিত ছিলেন নাগরিক সংহতির সাধারন সম্পাদক শরীফুজ্জান শরিফ ,জাসদ নেতা সহিদুল ইসলাম, আকতার আজিজ,এ্যাড: মেহেরুল ইসলাম,হবিবর রহমান, দয়ারাম রায়, রাসেল শাহীন, প্রমুখ। এছাড়াও দিনাজপুরের বিভিন্ন এরাকা হতে আগত কৃষক জাকির হোসেন,আশরাফ আলী,ইমরান হোসেন,আহসান হাবীব,রুহুল আমিন,কৃষানী সবিতা রায় ও রুবিনা আকতার আলোচনায় অংশ নেন।

গণ শুনানীতে কৃষক জাকির হোসেন বলেন চলতি মৌষুমে আলু বীজ সংকটে পড়ে এ অঞ্চলের আলু চাষীরা। নির্ধারীত মুল্যের চেয়ে  বিএডিসি থেকে বেশী দামে বীজ কিনতে হয়েছে। বরাবরই মানসম্মত বীজ বাজারে পাওয়া যায় না। তারা আরো বরেন,বিএডিসি কৃষকের চেয়ে ডিলারের স্বার্থকেই প্রধান্য দেয় বেশী,একজন কৃষকের চাহিদার দশভাগের একভাগ বীজ পাচ্ছে। কিন্তু ডিলার থেকে বীজ কিনতে গিয়ে কেজি প্রতি ৩০ টাকা বেশী গুনতে হচ্ছে। 

বক্তারা বলেন,কৃষি আস্তে আস্তে বহুজাতিক বীজ ব্যবসায়ীদের হাতে চলে যাচ্ছে,কৃষক জিম্মি হচ্ছে। ভেজাল বীজ বিক্রি হচ্ছে কিন্তু কৃষক প্রতিকার পাচ্ছে না। বক্তারা আরো বলেন,উত্তরাঞ্চলে সবজির দাম নেই,একটি ফুলকপি এখন টাকায় বিক্রি হচ্ছে কিন্তু ঢাকায় বিক্রি হচ্ছে ২৫টাকায়।

বক্তারা  অভিযোগ করেন, আগে কৃষক নিজেরাই বীজ সংরক্ষন করতো।এখন মাল্টি ন্যাশনাল কোম্পানী গুলো সরকারের ঘরে বীজ সরবরাহ করে। এতে করে বীজের মান ঠিক থাকে না। গণশুনানীতে কৃষকরা সরকারের কাছে বীজ সংকটের স্থায়ী সমাধান চেয়েছেন। 
এছাড়াও বক্তারা বীজ বিতরনে অনিয়ম বন্ধ,বীজ সংরক্ষনে হিমাগার,কৃষক আদালত গঠন,কৃষকদের বীজের চাহিদার তথ্য আগে থেকেই সংগ্রহসহ আরো সুনিদিষ্ট কয়েকটি প্রস্তবনা তুলে ধরেন।

গঙ্গানন্দপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে প্রস্তুতি সভা

গঙ্গানন্দপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে প্রস্তুতি সভা
গঙ্গানন্দপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে প্রস্তুতি সভা

স্টাফ রিপোর্টার: গঙ্গানন্দপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে মহান বিজয় দিবস উদযাপন উপলক্ষে প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত হয়। আজ ১০ ই ডিসেম্বর বৃহস্পতিবার সকাল ১১ টার সময় ১৬ ই ডিসেম্বর মহান বিজয়  দিবস উদযাপন উপলক্ষে যশোর জেলার ঝিকরগাছা  উপজেলার ঐতিহ্যবাহী গঙ্গানন্দপুর মাধ্যমিক  বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের কার্যালয়ে  বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদ এর সভাপতি আমিনুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। 

উক্ত অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও পরিচালনা পর্ষদ এর  সচিব মোস্তাফিজুর রহমান, বিদ্যুৎসাহী সদস্য প্রভাষক মহসীন আলী, সদস্য কামরুজ্জামান, সামসুর রহমান, জাহাঙ্গীর আলম, শিক্ষক প্রতিনিধি কামরুজ্জামান টিটু, জহুরুল ইসলাম, ছবি রানী ঘোষ  প্রমুখ।
উক্ত অনুষ্ঠানে আগামী ১৬ ই ডিসেম্বর মহান বিজয় দিবসের অনুষ্ঠান করোনা প্রাদুর্ভাবের কারণে  ঘরোয়া পরিবেশে করার সিদ্ধান্ত হয়।

বাঘারপাড়া উপজেলার উপনির্বাচনে নৌকার কর্মীকে কুপিয়ে হত্যা!

বাঘারপাড়া উপজেলার উপনির্বাচনে  নৌকার কর্মীকে কুপিয়ে হত্যা!
বাঘারপাড়া উপজেলার উপনির্বাচনে  নৌকার কর্মীকে কুপিয়ে হত্যা!

আব্দুল জব্বার, স্টাফ রিপোর্টার।যশোরের বাঘারপাড়া উপজেলা পরিষদের উপনির্বাচনে খালেদুর রহমান টিটো (৩২), নামে এক নৌকার কর্মীকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। নিহত কর্মী জহুরপুর ইউনিয়নের বেতালপাড়া গ্রামের মুন্তাজ মোল্যার ছেলে। এখন তার বাড়িতে শোকের মাতম চলছে। বৃহস্পতিবার (১০ডিসেম্বর) সকাল নয়টার দিকে তার মৃত্যু হয়েছে।


টিটোর পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, বুধবার (০৯ ডিসেম্বর) রাত সাড়ে আটটার দিকে টিটো বাড়ির রান্নার জন্য তৈল কিনতে বেতালপাড়া-হিংগারপাড়া গ্রামের সীমান্তে, কালাম সর্দারের দোকানে যাচ্ছিলো। এ সময় রাস্তায় থাকা সংঘবদ্ধ আনারস প্রতিকের কর্মীরা, তার উপর হামলা চালিয়ে কুপিয়ে আহত করে। গুরুত্বর অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে, যশোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে ঢাকায় রেফার করেন। পথিমধ্যে সকাল পৌনে দশটায় নবীনগরে এ্যাম্বুলেন্সের মধ্যে টিটোর মৃত্যু হয়।


নিহত টিটোর চাচা সাবেক ইউপি সদদ্য ইন্তাজ মোল্যা অভিযোগ করে বলেন, আনারস প্রতিকের প্রার্থীর ভাই ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সম্পাদক নুর মোহাম্মদ পাটোয়ারীর নেতৃত্বে এ হামলা চালানো হয়েছে। তিনি আরও বলেন, টিটোর মাথা থেকে প্রচুর রক্তক্ষরণ হয়েই তার মৃত্যু হয়েছে।

উল্লেখ্য, আজ বৃহস্পতিবার (১০ ডিসেম্বর) বাঘারপাড়ায় এই উপনির্বাচনের ভোটগ্রহণ চলছে। নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন প্রয়াত উপজেলা চেয়ারম্যানের স্ত্রী নৌকার প্রতিকে ভিক্টোরিয়া পারভীন সাথী ও ধানের শীষে শামছুর রহমান। অন্যদিকে ভোট শুরুর আট ঘন্টা আগে ভোট বর্জন করেছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী আনারস প্রতিকের দীলু পাটোয়ারী।

সিরাজগঞ্জ রতনকান্দিতে সার্কাসের হাতির মৃত্যু

সিরাজগঞ্জ রতনকান্দিতে সার্কাসের হাতির মৃত্যু

সিরাজগঞ্জ রতনকান্দিতে সার্কাসের হাতির মৃত্যু

মাসুদ রানা সিরাজগঞ্জ জেলাপ্রতিনিধিঃদি কিং স্টার সার্কাসের অসুস্থ হাতির মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। বুধবার রাতে সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলার রতনকান্দি ইউনিয়নের সীমান্ত বাজার এলাকায় এই ঘটনাটি ঘটে।হাতির মায়ুথ মো. সোহেল রানা জানান, হাতিটির টিউমার হলে ১৫ দিন আগে রাজশাহী বনবিভাগের সহযোগীতায় চিকিৎসার পর একটু সুস্থ হলে সিরাজগঞ্জ হয়ে সিলেটের উদ্দেশ্যে রওনা হই হাতিটি নিয়ে। এরপর সিরাজগঞ্জ সীমান্ত বাজার এলাকায় এলে হাতিটি শুয়ে পড়ে। এর কিছুক্ষন পর হাতির মৃত্যুর হয়।হাতির মালিক মো. আব্দুল জলিল জানান, করোনার প্রভাবে সার্কাস বন্ধ হয়ে যায়। সার্কাস বন্ধ হওয়ায় হাতিটি বিভিন্ন বিনোদন কেন্দ্রে ভাড়া দেয়া হতো। হাতিটি মারা যাওয়ায় অপুরনীয় ক্ষতিসাধন হলো এবিষয়ে দি কিং ষ্টার সার্কাসের মালিক মোঃ আশরাফুল আলম বলেন আমার সার্কাসে আগে ভারা নিতাম কিন্ত করোনার কারণে সার্কাস বন্ধ থাকায় হাতির খাবারের জন্য বিভিন্ন গ্রামে গ্রামে ঘুরে হাতির খাওয়ান ঝোগার করে। বুধবার বিকালে হাতিপরিচালনা কারি সোহেল এসে বলে ভাই হাতিটি অসুস্থ তাই আপনার এখানে আজকে থেকে সকালে গাড়িতে করে সিলেট জাব হঠাৎ ভোর ৫টায় বলে ভাই হাতিটা মারা গেছে। উপজেলা প্রাণি সম্পদ কর্মকর্তা ডা.হারুন অর রশিদ জানান, আমি বিষয়টি অবগত হয়ে সরজমিনে এসেছি। বন বিভাগের কর্মকর্তাদের সিদ্ধান্ত মোতাবেক ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।সামাজিক বন বিভাগের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা  ঋষিতেশ চন্দ্র রায় জানান, হাতির মালিক বন বিভাগের লাইসেন্সধারী হলে প্রাণি সম্পদের ডাঃ দ্বারা মৃত্যুর কারন জেনে মালিকের নিকট হস্তান্তর করা হবে। লাইসেন্সধারী না হলে সে ক্ষেত্রে আইনগত ব্যবস্থা  নেয়া হবে।

ঝিনাইদহে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার দিবস পালিত

ঝিনাইদহে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার দিবস পালিত

খোন্দকার আব্দুল্লাহ বাশার,ঝিনাইদহ জেলা প্রতিনিধিঃ ঘুরে দাঁড়াবো আবার, সবার জন্য মানবাধিকার’ এ প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে ঝিনাইদহে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার দিবস পালিত হয়েছে।

বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন সদর উপজেলা শাখার আয়োজনে এ উপলক্ষে বৃহস্পতিবার সকালে শহরের পায়রা চত্বর থেকে একটি র‌্যালী বের করা হয়। র‌্যালীটি শহরের বিভিন্ন সড়ক ঘুরে একই স্থানে গিয়ে শেষ হয়। পরে সেখানে পালিত হয় মানববন্ধন কর্মসূচী। এতে সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য খালেদা খানম, বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন সদর উপজেলা শাখার সভাপতি এ্যাড. শেখ ওয়াশিকুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক শাহিদুর রহমান সন্টুসহ মানবাধিকার কর্মীরা বক্তব্য রাখেন। পরে শহরের বিভিন্ন স্থানে করোনা প্রতিরোধে মাস্ক বিতরণ করা হয়।

অপরদিকে শহরের পুরাতন ডিসি কোর্ট চত্বর থেকে হিউম্যান রাইটস মনিটরিং অর্গানাইজেশন এর উদ্যোগে একটি র‌্যালী বের করা হয়। র‌্যালীটি শহরের বিভিন্ন সড়ক ঘুরে প্রেসক্লাবের সামনে গিয়ে শেষ হয়। পরে প্রেসক্লাব মিলনায়তনে আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। হিউম্যান রাইটস মনিটরিং অর্গানাইজেশন এর সভাপতি শামীমুল ইসলাম শামিম এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় মহিলা সংস্থার চেয়ারম্যান দিপ্তী রহমান। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, প্রেসক্লাবের সভাপতি এম রায়হান, জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি আহাদুর রহমান খোকন, ওয়াজির আলী স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ হাবিবুর রহমান, প্রগতি কিন্ডারগার্টেন স্কুলের পরিচালক আবুল কালাম আজাদ, সিনিয়র সাংবাদিক দেলোয়ার কবির। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন সদর উপজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক বিএম আনোয়ার হোসেন। এসময় বক্তারা, মানবাধিকার রক্ষায় সকলকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান।

রতন কান্দিতে বিট পুলিশিং সমাবেশ অনুষ্ঠিত

রতন কান্দিতে বিট পুলিশিং সমাবেশ অনুষ্ঠিত

রতন কান্দিতে বিট পুলিশিং সমাবেশ অনুষ্ঠিত
মাসুদ রানা সিরাজগঞ্জ জেলাপ্রতিনিধিঃ  মজিব বর্ষের অঙ্গীকার পুলিশ হবে জনতার এই শ্লোগানকে সামনে রেখে সিরাজগঞ্জে বিট পুলিশিং সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকাল ১০ টায় ১ং রতন কান্দি ইউনিয়নে বয়ড়া ভেন্নাবাড়ি উচ্চবিদ্যালয় মাঠে মাদক,  সন্ত্রাস,জঙ্গীবাদ,নারী নির্যাতন,ইভটিজিং মুক্ত সমাজ গড়তে ও তৃনমূল  থেকে সকল অপরাধ দমনের জন্য পুলিশ প্রতিটি ইউনিয়ন পরিষদের একটি করে বিট পুলিশিং ডেক্স চালু করেছে।এর জন্য সচেতনতা মূলক এই বিট পুলিশিং সমাবেশের আয়োজন করা  হয়। রতন কান্দি ইউনিয়ন আঃমীলীগের ভার প্রাপ্ত সভাপতি ছাইদুল ইসলাম জুরানের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন সিরাজগঞ্জ সদর সার্কেলের সিনিয়র সহকারী  পুলিশ সুপার স্নিগ্ধ আক্তার।সদর থানা অফিসার ইনচার্জ মোঃ বাহাউদ্দিন ফারুকী, এস আই আনিছুর রহমান, সাংবাদিক মাসুদ রানা (বাচ্চু), রতন কান্দি ইউনিয়ন আঃমীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান বিপ্লব, 

ইউনিয়ন আওয়ামী যুবলীগের  সাধারণ সম্পাদক বুলবুল আহমেদ ভুট্টো।

ইউনিয়ন ছাত্র লীগের  সভাপতি আঃ আলিম খান, সাধারণ সম্পাদক জাকিরুল ইসলাম বাবু। রতনকান্দি ইপি সদস্য চাঁন মিয়া,ওসমানগুনি,হীরন,আঃআলিম,আবুল কালাম,বেবী খাতুন সহ অত্র ইউনিয়নের সাধারণ জনতার এক অংশ।অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন রতনকান্দি ইউনিয়ন আঃমীলীগের শ্রমবিষয় সম্পাদক বাবুল আক্তার।

ঝিকরগাছায় বিশ্ব মানবাধিকার দিবস উদযাপন

ঝিকরগাছায় বিশ্ব মানবাধিকার দিবস উদযাপন

মোঃ ইকরামুল করিম সৈকত, ঝিকরগাছা প্রতিনিধিঃ১০ ডিসেম্বর বিশ্ব মানবাধিকার দিবস। প্রতিবছর এই দিনে বিশ্ব মানবাধিকার দিবস পালিত হয়। 

বাংলাদেশেও এই দিবসটি যথাযোগ্য মর্যাদার সঙ্গে পালিত হয়। ১৯৪৮ সালে জাতিসংঘ এই দিনটি পালনের সিদ্ধান্ত নেয়।বিশ্ব মানবাধিকার দিবস উপলক্ষ্যে বাংলাদেশ মানবাধিকার কল্যাণ ট্রাষ্ট ঝিকরগাছা উপজেলা শাখার উদ্যোগে আলোচনা সভা ও আনন্দ র‌্যালি অনুষ্ঠিত হয়। 

উক্ত আলোচনা সভা ও আনন্দ র‍্যালিতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন যশোর-২ আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য বীরমুক্তিযোদ্ধা মেজর জেনারেল (অব:) অধ্যাপক ডাঃ মোঃ নাসির উদ্দীন। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন ঝিকরগাছা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোঃ মনিরুল ইসলাম, উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি চৌধুরী রমজান শরীফ বাদশা, পৌর মেয়র মোস্তফা আনোয়ার পাশা জামাল, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মোঃ সেলিম রেজা, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান লুবনা তাক্ষী, মানবাধিকার কল্যাণ ট্রাস্ট এর মহাসচিব সাইফুল ইসলাম সহ মানবধিকারের সকল পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ।

বগুড়া সদরে পৌর নির্বাচন উপলক্ষে মতবিনিময় সভা

বগুড়া সদরে পৌর নির্বাচন উপলক্ষে মতবিনিময় সভা





মোঃ সবুজ মিয়া বগুড়া প্রতিনিধিঃ বগুড়া শহরের ১৬নং ওয়ার্ডের নিশিন্দারা উত্তরপাড়া ওলির মোড়স্থ এলাকায় আসন্ন পৌরসভা নির্বাচন উপলক্ষে নির্বাচনী মতবিনিময় সভায় বক্তব্য রাখেন পৌরসভার মেয়র প্রার্থী ও পৌর আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব আবু ওবায়দুল হাসান ববি।

উক্ত মতবিনিময় সভায় সভাপতিত্ব করেন ওয়াার্ড আওয়ামী লীগ সভাপতি আলী রাসেল সোহাগ, বক্তব্য রাখেন পৌর আওয়ামী লীগ নেতা শফিকুল ইসলাম শফিক,মহিলা কাউন্সিলর প্রার্থী মুক্তি বেগম।

মানবাধিকার রক্ষায় পুলিশ-প্রশাসনের দুর্নীতি থামান : মোমিন মেহেদী

মানবাধিকার রক্ষায় পুলিশ-প্রশাসনের দুর্নীতি থামান : মোমিন মেহেদী

প্রেস বিজ্ঞপ্তিঃ নতুনধারা বাংলাদেশ এনডিবির চেয়ারম্যান মোমিন মেহেদী বলেছেন, মানবাধিকার রক্ষায় পুলিশ-প্রশাসনের দুর্নীতি থামান মাননীয় প্রধানমন্ত্রী-রাষ্ট্রপতি-স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী-পুলিশ-প্রশাসন সংশ্লিষ্ট সবাই দয়া করে মানবাধিকার মুখে নয় কাজে প্রমাণ করুন। তা না হলে জনগন ঘুড়ে দাঁড়াতে বাধ্য হবে।


বিশ^ মানবাধিকার দিবস উপলক্ষ্যে ১০ ডিসেম্বর সকাল ১০ টায় হোটেল মুক্তি মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত ‘ঘুরে দাঁড়াবো আবার সবার জন্য মানবাধিকার’ শীর্ষক আলোচনা সভায় তিনি উপরোক্ত কথা বলেন।  প্রেসিডিয়াম মেম্বার বীর মুক্তিযোদ্ধা ফজলুল হকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান শান্তা ফারজানা, প্রেসিডিয়াম মেম্বার রবীন্দ্র চন্দ্র বাড়ৈ,ভাইস চেয়ারম্যান একরামুল হক গাজী, মহাসচিব নিপুন মিস্ত্রী, সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান হাফিজুর রহমান হাফিজ প্রমুখ।  

এসময় নেতৃবৃন্দ বলেন, মানবাধিকার দিবসে সরকার প্রধানের কাছে একটাই দাবী বিচারের সংস্কৃতি তৈরি করুন। ধর্ষণ-খুন-নির্যাতন প্রতিরোধে পুলিশ-প্রশাসনে দুর্নীতি থামান

নওগাঁর রানীনগর উপজেলা পরিষদের উপনির্বাচনের ভোট শুরু

নওগাঁর রানীনগর উপজেলা পরিষদের উপনির্বাচনের ভোট শুরু
নওগাঁর রানীনগর উপজেলা পরিষদের উপনির্বাচনের ভোট শুরু 

রাজশাহী ব্যুরোঃ নওগাঁর রানীনগর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে উপনির্বাচনে ভোট গ্রহণ শুরু হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকাল ৯টা থেকে ভোটগ্রহণ শুরু হয়। তবে শীত ও কুয়াশার কারণে ভোটার উপস্থিতি অনেকটাই কম।

এ পদে তিনজন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। তারা হলেন- নৌকা প্রতীকে উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রউফ দুলু, ধানের শীষ প্রতীকে উপজেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক মোসারব হোসেন এবং মোটরসাইকেল প্রতীকে স্বতন্ত্র প্রার্থী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মফিজ উদ্দিন।

নৌকা প্রতীকের প্রার্থী মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রউফ দুলু বলেন, তিনি জয়ের ব্যাপারে শতভাগী আশাবাদী। বিজয়ী হতে পারলে প্রধানমন্ত্রীর প্রকল্প বাস্তবায়নে এলাকার সার্বিক উন্নয়ন কর্মকাণ্ড অব্যাহত রাখবেন।

রানীনগর উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা জায়দা খাতুন বলেন, উপজেলার ৫৬টি কেন্দ্রে মোট ভোটার সংখ্যা ১ লাখ ৪৯ হাজার ৫৮৭ জন। এরমধ্যে পুরুষ ভোটার ৭৪ হাজার ৮৬৫ জন এবং নারী ভোটার ৭৪ হাজার ৭২২ জন। সকাল ৯টা থেকে বিকেলে ৫টা পর্যন্ত ভোটগ্রহণ চলবে।

গত ২৭ জুলাই নওগাঁ-৬ (রানীনগর-আত্রাই) আসনের সংসদ সদস্য ইসরাফিল আলম করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা গেলে আসনটি শূন্য হয়। ওই আসনে উপনির্বাচনে অংশ নিতে রানীনগর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন হেলাল পদত্যাগ করায় চেয়ারম্যানের পদটি শূন্য হয়। ১৭ অক্টোবর নির্বাচনে আওয়ামী লীগ প্রার্থী হিসেবে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন আনোয়ার হোসেন হেলাল।

ভাস্কর্য ভাঙচুরের প্রতিবাদে চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের বিক্ষোভ মিছিল

ভাস্কর্য ভাঙচুরের প্রতিবাদে চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের বিক্ষোভ মিছিল

বেলাল উদ্দিন সিনিয়র স্টাফ রিপোর্টারঃকুষ্টিয়া পাঁচ রাস্তার মোড়ে রাতের অন্ধকারে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্য ভাংচুরের প্রতিবাদে চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের আয়োজিত বিক্ষোভ সমাবেশ ও মিছিলে ৪১নং দক্ষিণ পতেঙ্গা ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ্ব ছালেহ আহাম্মদ চৌধুরীর নেতৃত্বে আওয়ামীলীগ,যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবকলীগ,ছাত্রলীগ অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের বিশাল মিছিল সহ যোগদান করেন।

নাগরপুরে বিজয় মাস উপলক্ষে ফ্রি ব্লাড গ্রুপিং

 নাগরপুরে বিজয় মাস উপলক্ষে ফ্রি ব্লাড গ্রুপিং

 


হাসান সাদী নাগরপুর(টাংগাইল)প্রতিনিধি: রক্ত দিন,জীবন বাঁচান এই মহান বাক্যটি বাস্তবায়নের লক্ষে মহান বিজয় মাস উপলক্ষে বন্ধু স্বেচ্ছায় রক্তদাতাদের সংগঠন এর উদ্যোগে সকল শ্রেনী নাগরিকদের মাঝে  ফ্রি ব্লাড গ্রুপিং নির্নয়  কর্মসূচী অনুষ্ঠিত হয়েছে।

আজ বৃহস্পতিবার, ১০ ডিসেম্বর ২০২০ খ্রি.সকাল ৯.০০ টা থেকে দুপুর ১.০০ টা পর্যন্ত নাগরপুর সরকারি কলেজ প্রধান গেটে ফ্রি ব্লাড গ্রুপিং কার্মসৃচী পালিত হয়েছে। প্রায় দুই শতাধিক ফ্রি ব্লাড গ্রুপ নির্নয় করা হয়। 

প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি মো.আশিক এর পরিচালনায় নাগরপুর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মো.হুমায়ুন কবীর ভিপি হুমায়ুন  প্রধান অতিথি ও উদ্বোধক হিসাবে শুভ উদ্বোধন ঘোষণা করেন।

চিকিৎসক হিসাবে উপস্হিত ছিলেন মুকতাদির হোমিও চিকিৎসা কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ম্যানেজিংডিরেক্টর(এমডি)

বিশিষ্ট হোমিওপ্যাথিক মেডিসিন গবেষক ও কনসালটেন্ট প্রভাষক ডা.এম.এ.মান্নান,মেডিকেল অফিসার(হোমিও) ডা.কাওছার খান,মেডিকেল সহকারী মো.মকবুল হোসেন।স্বেচ্ছাসেবক হিসাবে উপস্হিতি ছিলেন,মো.শহিদুল,মো.শাহাদত,মো.সজিব,মো.জাকারিয়া, মো.সুমন,মো.শাওন,মো.ফয়সাল,মো.আল আমীন প্রমুখ।

পটিয়ায় রতনপুর স্কুলের চলাচলের পথ বন্ধ করে দেওয়ার অভিযোগ

পটিয়ায় রতনপুর স্কুলের চলাচলের  পথ বন্ধ করে দেওয়ার অভিযোগ


 পটিয়া(চট্টগ্রাম) প্রতিনিধিঃ- চট্টগ্রামের 
পটিয়া উপজেলার কেলিশহর ইউনিয়নের রতনপুর দিঘীরপাড় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে'র পাশে সোনাইছড়ি খালের উপর নির্মিত চলাচলের রাস্তা বন্ধ করে দেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। রবিবার পটিয়া উপজেলা সহকারি কমিশনার ভূমি ও পটিয়া থানার ওসি'র বরাবরে স্কুল পরিচালনা কমিটির সভাপতি ফরিদুল আলম ও প্রধান শিক্ষক শমিতা চক্রবর্তী লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগ সূত্রে জানাযায়, পূর্বরতনপুর গ্রামের মৃত আবদুল মোতালেবের পুত্র মো: আরমান ও মো: মাসুদ সোনাইছড়ি খালের উপর প্রায় ৩০ বছর পূর্বে নির্মিত চলাচলের রাস্তা টিনের ভেড়া দিয়ে রাস্তাটি বন্ধ করে দেয়। এ ব্যাপারে বন্ধ করে দেয়ার কারণ জানতে চাইলে তারা ভয়ভীতি ও মারধরের হুমকি দিয়ে আসছে। এ ব্যাপারে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানকে অবহিত করা হলেও তিনি কোন ব্যবস্থা নেয়নি। ফলে দক্ষিণ করলডেঙ্গা গ্রামের ছাত্রছাত্রীরা এ রাস্তা দিয়ে যাতায়ত করে থাকেন। বর্তমানে রাস্তাটি বন্ধ করে দেওয়ায় শিক্ষার্থী স্কুলের আসতে পারছে না।
এ ব্যাপারে সহকারি কমিশনার ভূমি ইনামূল হাছান জানান, তিনি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে অভিযোগের সত্যতা পান এবং প্রতিপক্ষকে স্কুলের শিক্ষার্থীদের চলাচলের পথ শীঘ্রই খুলে দেয়ার নির্দেশ দেন। অন্যতায় তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে তিনি জানান।

দক্ষিণ -পশ্চিম অঞ্চলের দুই প্রান্ত এক হতে চলেছে!

দক্ষিণ -পশ্চিম অঞ্চলের  দুই প্রান্ত এক হতে চলেছে!



স্বপ্নের  পদ্মা সেতু নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ তথ্যঃ 

স্বপ্নের  পদ্মা সেতু নির্মাণের মূল নায়কঃ--- বাংলার অবিসংবাদিত নেতা সফল রাষ্ট্র নায়ক জননেত্রী শেখ হাসিনা।

##--- ১৯৯৯- সালে প্রাক সম্ভবতা যাচাই শুরু হয়।

##--- ২০০৯- সালে বিস্তারিত সমীক্ষা শুরু করে এশিয়ান উন্নয়ন ব্যাংক-(এ ডি বি)।

##---নির্মান শুরু - ৭ ডিসেম্বর ২০১৪।

##--- মোট দৈর্ঘ্য -৬.১৫ কিঃ মিঃ ( ২০,২০০ফুট)।

##--- মোট প্রস্তঃ ১৮.১০ মিটার।

##---  নকশাঃ এ ই সি ও এম।

##-অফিসিয়াল নামঃ- পদ্মা বহুমুখী সেতু।

####- তদারকিঃ বাংলাদেশ সেতু কতৃপক্ষ।

## মূল ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানঃ চায়না মেজর ব্রিজ কোম্পানি লিঃ  ( সি আর ই সি)।

অর্থায়নেঃ গনপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার।

আরো পড়ুন: পদ্মা সেতু এখন দৃশ্যমান!

।। আজকে বসানো হবে।।

১২ ও ১৩ নং পিলারের উপর শেষ স্পান।

সংযুক্ত হবেঃ

লৌহজং- মুন্সিগঞ্জে ----- শরিয়তপুর - মাদারীপুর।

স্বাধীন বাংলাদেশের স্বপ্ন দ্রষ্টা সর্ব কালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালী জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান।

১৯৭৫- সালে বিয়োগাত্মক ঘটনার পর বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ কে ষড়যন্ত্রকারীরা পিছনের দিকে নিতে চেয়েছিল।

বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা আজকে উন্নয়নকে মহাসড়কে দূরন্ত গতিতে ধাবমান, চালকের আসনে বঙ্গবন্ধু কন্যা সফল রাষ্ট্র নায়ক জননেত্রী শেখ হাসিনা।

পটিয়ায় সড়ক দুর্ঘটনায় স্কুল শিক্ষার্থী নিহত, এলাকায় শোকের মাতম

পটিয়ায় সড়ক দুর্ঘটনায় স্কুল শিক্ষার্থী নিহত, এলাকায় শোকের মাতম

সেলিম চৌধুরী স্টাফ রিপোর্টারঃ- চট্টগ্রাম কক্সবাজার মহাসড়কের পাশে পটিয়ার ভাইয়ারদিঘী’র এলাকায় নুরুদ্দিন শাহ মাজার নির্মান ও ওরশের জন্য টাকা তুলতে গিয়ে পাইভেট কারের ধাক্কায় স্কুল ছাত্র মো. ফয়সাল ইসলাম ওরফে জিসান (১১) নিহত হয়েছে। ঘটনাটি ঘটে বুধবার দুপুর আড়াইটা এ দূঘর্টনা ঘটে। নিহত জিসান আজিমপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৪র্থ শ্রেণি’র ছাত্র। সে কচুয়াই ইউনিয়নের পূর্ব আজিমপুর ৬নং ওয়ার্ড শেখপাড়া এলাকার মুহাম্মদ ফারুকের পুত্র বলে জানাগেছে।

পুলিশ ও স্থানীয় গ্রামবাসী সূত্রে জানায়, আগামীকাল বৃহষ্পতিবার নুরুদ্দিন শাহের বার্ষিক ওরশ রয়েছে। এ উপলক্ষে কচুয়াই ইউনিয়নের আজিমপুর ভাইয়া র্দীঘির দক্ষিণ পাড় এলাকায় মাজারটির সামনে বসে ওরশের আযোজকদের পক্ষ থেকে চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের পাশে বসে যানবাহন থেকে চাঁদা তুলছিলেন। এসময় একটি গাড়ি থেকে সড়কে ফেলানো টাকা নিতে গিয়ে প্রাইভেট কারের ধাক্কায় ফয়সাল ইসলাম ঘটনাস্থলে প্রাণ হারান।

এ ব্যাপারে কচুয়াই ইউপি চেয়ারম্যানা ইনজামূল হক জসিম জানান, দূঘর্টনার পরপর পটিয়া থানা ও হাইওয়ে পুলিশকে খবর দেয়া হলে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়নি। এলাকায় দূঘর্টনা নিয়ে লোকজনের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দিলে লাশটি দ্রুত বাড়িতে পাটিয়ে দেয়া হয়। পরে পটিয়া থানা ও হাইওয়ে পুলিশের টিম ঘটনাস্থলে গিয়ে মাজারের নামে টাকা তোলার আস্তানাটি ভেঙ্গে দিয়ে লোকজনকে তাড়িয়ে দেয়। তবে দূঘর্টনা জড়িত ঘাতক গাড়িটি পালিয়ে যায়। লাশটি পরিবারের পক্ষ থেকে ময়নাতদন্ত না করার অনুরোধ জানালে পুলিশ লাশটি পরিবারের নিকট হস্তান্তর করেন। বাদে আসরে নামাজের জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থনে লাশটি দাফন করা হয়।

পটিয়া থানার উপ পরিদর্শক (এসআই) বোরহান উদ্দিন বলেন, স্থানীয় নুরুদ্দিন শাহের মাজারের ওরশের চাঁদা তুলছিল ওরশের আয়োজকরা। এসময় ফয়সাল ইসলাম জিসান সড়ক থেকে টাকা নিতে গিয়ে প্রাইভেট কারের ধাক্কায় সেই ঘটনাস্থলে মারা যায। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে আস্তানাটি ভেঙ্গে দিয়ে মাইক খুলে থানায় নিয়ে আসার হয়েছে। তবে এই ব্যাপারে এখনো কেউ থানায় অভিযোগ।