গাছ কাটা ও ভবন নিলামে না দিয়ে বিক্রি করায় প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে মানববন্ধন

লালমনিরহাট জেলা প্রতিনিধি :লালমনিরহাট জেলার কালীগঞ্জ উপজেলার বাবুর আলী পাবলিক উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে অনিয়ম ও দুর্নীতি  এবং এলাকার জনগনকে অযথা হয়রানীর প্রতিবাদে কালীগঞ্জ উপজেলা শিক্ষা অফিসের  সামনে ১৫/০৩/২১ রোজ সোমবার  দুপুর ২ ঘটিকার সময় মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।  উক্ত মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন বৈরাতী এলাকার জনসাধারন এবং বাবুর আলী পাবলিক উচ্চ বিদ্যালয়ের অভিভাবক সদস্য  বৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

তারা ৭ দফা দাবিতে মানববন্ধন  করেন নিম্ন দেয়া হলো

(১) স্কুলের পরীক্ষার ফি এর নামে চাঁদাবাজি চলবে না চলবে না।
(২) তার সকল অবৈধ টাকা উপার্জনের উপর তদন্ত করে তার বিচার চাই,  বিচার চাই করতে হবে, করতে হবে।
(৩) তার সকল অর্থ সম্পদের হিসাব চাই নিতে হবে,  নিতে হবে।
(৪) নিলাম না দিয়ে ৯ টি রুম বিক্রি করে ১৫ লক্ষ টাকা আত্নসাৎ করার বিচার চাই বিচার চাই করতে করতে হবে ।
(৫) স্কুলের গাছ সহ রাস্তার গাছ কেটে ১০ লক্ষ টাকা বিক্রি করে অর্থ আত্নসাৎ করায় বিচার চাই করতে হবে।
(৬) প্রধান শিক্ষকের বেতন বিল বন্ধ করো করতে হবে।
(৭) প্রধান শিক্ষকের অবৈধ ম্যানেজিং কমিটি বাতিল করো করতে হবে। 

বিভিন্ন অভিযোগেরব আলোকে উপজেলা শিক্ষা অফিস তদন্ত  প্রকিয়াধীন অবস্থায় আছে,  এলাকাবাসী নিরুপায় ও সঠিক বিচার এবং তদন্তের দাবিতে মানববন্ধন করেন।


অভিযোগ সুত্রে মনিরুজ্জামান জানান,  নজরুল ইসলাম মোল্লা ১৫ লক্ষ  টাকা স্কুলের ভবন নিলামে না দিয়ে আত্নসাৎ করেন।  

হাদিউজ্জামান মিলন জানান  স্কুলের গাছ সহ সরকারী রাস্তার গাছ তিনি প্রায় ১০ লক্ষ টাকা বিক্রি করে আত্নসাৎ করে স্কুলের অজুহাতে।
আবু তাহের জানান, করোনাকালীন সময়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার শিক্ষা সহায়তার জন্য অনলাইনে ফরম পুরনের জন্য প্রত্যয়ন পত্র প্রয়োজন ছিল। বাবুর আলী পাবলিক উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নজরুল ইসলাম মোল্লা প্রত্যয়ন পত্র বাবদ ছাত্র-ছাত্রীদের কাছে জোড় পুর্বক ১৩০ টাকা করে আদায় করেন।

অভিভাবক রাকিবুল ইসলাম জানান,  এস এস সির ফরম ফিলাম বাবদ প্রতি শিক্ষার্থীর কাছে ২৫০০ টাকা করে আদায় করেন
অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষক নজরুল ইসলাম মোল্লার সাথে একাধিক বার মুটো ফোনে যোগাযোগ কারার চেষ্টা করলেও ফোন ধরেন নি তিনি।

শেয়ার করুন
পূর্ববর্তী পোষ্ট
পরবর্তী পোষ্ট