থানার সোর্স ও ক্যাশিয়ার গ্রুপের হামলায় নিহত- ১

নিউজ ডেস্কঃ চট্টগ্রাম  মহানগরীর ডবলমুরিং থানাধিন আগ্রবাদ জাম্বুরী মাঠ এলাকায় কথিত পুলিশের সোর্স ও ক্যাশিয়ারের নেতৃত্বে কিশোর গং এর হামলায় খুন হয়েছে মো. হাসেম (৩৩) নামে এক যুবক।

আজ বুধবার (১৭ মার্চ) দুপুর সাড়ে ১২টায় আগ্রাবাদ জাম্বুরি পার্ক সংলগ্ন ১০ তলা ভবনের সামনে প্রকাশ্য এই হামলায় আহত হয়েছে আরও অন্তত ৭ জন।

হামলার শিকার পক্ষটি অভিযোগ করে এই প্রতিবেদককে জানায়, পুলিশ নিজেদের সোর্স মাসুদ, রনি আর ক্যাশিয়ার লিমনকে রক্ষা করতে উলটো তাদের গণ হারে গ্রেফতার করছে৷ তবে থানার পুলিশের দাবী ঘটনার পর অভিযান চালিয়ে ২৪ জনকে আটক করা হয়েছে। নিহত হাসেম হালিশহর থানাধীন রঙ্গিপাড়ার বাসিন্দা।

এদিকে ডবলমুরিং থানার ওসি মো. মহসিন গণমাধ্যমকে জানিয়েছে- আগ্রাবাদ ইস্টার্ণ বয়েজ ক্লাব নামে একটি সংগঠনের সদস্যরা ওই এলাকায় সাইকেল র‌্যালী বের করলে সড়ক অবরোধ হয়ে যানচলাচল বাধা হয়ে যায়। এসময় আটকা পড়া এক রিক্সা যাত্রী সড়ক বন্ধ করে সাইকেল র‌্যালীর প্রতিবাদ জানালে কিশোর গ্যাং এর সদস্যরা তার উপর হামলা চালায়। এঘটনার জের ধরে দুপক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ শুরু হলে একজন নিহত ও ৪ জন আহত হয়। পুলিশ অভিযান চালিয়ে ২৪ জনকে আটক করেছে।

তবে হামলায় আহত এক যুবকের দাবী হামলা কারীরা এলাকার চিহ্নিত সিডিএ ফাঁড়ির সোর্স মাসুদ, রনি ও ক্যাশিয়ার লিমনের নেতৃত্বে জাম্বুরি মাঠের আশপাশে মাদক ব্যবসা থেকে শুরু করে হকারদের কাছ থেকে টাকা আদায় করে থাকে৷ হামলার পর হামলাকারীদের অনেককেই পুলিশের সাথে ঘুরাফেরা করতে দেখা গেলেও তাদের কাউকে পুলিশ আটক করেনি৷ গত মাস খানেক আগেও এই একই গ্রুপের হামলার শিকার হলেও সিডিএ ফাঁড়ির ইনচার্জ এস আই অর্ণব বড়ুয়ার সোর্স ও ক্যাশিয়ার হওয়ায় তাদের বিরুদ্ধে থানা পুলিশ কোন অভিযোগ গ্রহণ করেনি। এই বিষয়ে এস আই অর্ণব বড়ুয়ার বক্তব্য জানতে একাধিকবার যোগাযোগ করেও তাকে পাওয়া যায়নি ।

শেয়ার করুন
পূর্ববর্তী পোষ্ট
পরবর্তী পোষ্ট