লকডাউনে সীমিত পরিসরে চলবে জগন্নাথ, শিক্ষক-কর্মকর্তাদের ঢাকা ত্যাগে নিষেধাজ্ঞা

লকডাউনে সীমিত পরিসরে চলবে জগন্নাথ, শিক্ষক-কর্মকর্তাদের ঢাকা ত্যাগে নিষেধাজ্ঞা
জবি প্রতিনিধি: করোনা ভাইরাস সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের প্রজ্ঞাপনের প্রেক্ষিতে ৫ এপ্রিল থেকে ১১ এপ্রিল পর্যন্ত জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে (জবি) জরুরী দপ্তর ও জরুরী কাজে নিয়ােজিত জনবল ব্যতীত সকল বিভাগ/দপ্তর বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। এছাড়াও সরকারি সিদ্ধান্ত অনুযায়ী লকডাউন চলাকালীন সময়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, কর্মকর্তা, কর্মচারীবৃন্দদের নিজ নিজ বাসায় অবস্থান করার জন্য নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

সোমবার (৫ এপ্রিল) উপাচার্যের (দায়িত্বপ্রাপ্ত) নির্দেশক্রমে রেজিস্ট্রার প্রকৌশলী মোঃ ওহিদুজ্জামানের সই করা একটি জরুরি বিজ্ঞপ্তি ও পরবর্তীতে আরো একটি সম্পূরক জরুরি বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়।জরুরি বিজ্ঞতিতে বলা হয়, সরকারের প্রজ্ঞাপনের প্রেক্ষিতে আগামী ৫ এপ্রিল থেকে ১১ এপ্রিল পর্যন্ত জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের জরুরি দপ্তর ও জরুরি কাজে (যেমন বিদ্যুৎ, গ্যাস, পানি, টেলিফোন, ইন্টারনেট, জরুরি গবেষণা ইত্যাদি) নিয়োজিত জনবল ছাড়া সব বিভাগ/দপ্তর বন্ধ থাকবে। তবে উপাচর্যের দপ্তর, ট্রেজারার দপ্তর, রেজিস্ট্রার দপ্তর, অর্থ ও হিসাব দপ্তর, প্রকৌশল দপ্তর, পরিকল্পনা ও উন্নয়ন দপ্তর, আইসিটি সেল, জনসংযোগ, তথ্য ও প্রকাশনা দপ্তর এবং প্রষ্টর দপ্তর প্রয়োজনীয় জনবল দ্বারা সীমিত আকারে চালু থাকবে এবং সব ধরনের অনলাইন কার্যক্রম চালু থাকবে। এছাড়া সরকার কর্তৃক সময়ে সময়ে জারীকৃত নির্দেশ প্রতিপালিত হবে।

সম্পূরক জরুরি বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের যে সকল বিভাগ/দপ্তরসমূহ খােলা রাখার জন্য বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়েছে সে সকল বিভাগ/দপ্তর ছাড়াও জরুরি প্রয়োজন অনুযায়ী পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক দপ্তর, নিরাপত্তা, পরিবহণপুলসহ অন্যান্য ইনস্টিটিউট/বিভাগ/দপ্তর প্রয়ােজনীয় জনবল দ্বারা সরকারী স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণপূর্বক সীমিত আকারে খােলা রাখতে হবে। সরকারী সিদ্ধান্ত অনুযায়ী লকডাউন চলাকালীন সময়ে শিক্ষক/কর্মকর্তা/কর্মচারীবৃন্দকে নিজ নিজ বাসায় অবস্থান করতে হবে। কেউ কর্মস্থল তথা ঢাকা ত্যাগ করতে পারবেন না।

এ ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার প্রকৌশলী মোঃ ওহিদুজ্জামান বলেন, "শুধুমাত্র জরুরি কাজের জন্য বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখিত দপ্তরসমূহ খোলা থাকবে। এছাড়া সকল কার্যক্রম বন্ধ থাকবে।"ঢাকা ত্যাগের সিদ্ধান্তে তিনি বলেন, "এটি লকডাউনের সরকারি প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।"

তিনি আরো বলেন, "আমরা বিশ্ববিদ্যালয়ের যথাসম্ভব কম স্টাফদের নিয়ে কার্যক্রম চালানোর চেষ্টা করবো এবং ক্যাম্পাসে অবস্থানরত সকলের মাস্ক পরিধান বাধ্যতামূলক ও স্বাস্থ্যবিধি মানার ব্যাপারে কঠোর অবস্থানে থাকবো। নিরাপত্তা প্রহরী ও দায়িত্বরত কর্মচারীদের সার্বক্ষণিক কড়াকড়ি অবস্থানে থাকার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।"
 
উল্লেখ্য সারাদেশে করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব পুনরায় ব্যাপকহারে বৃদ্ধি পাওয়ায় বিভিন্ন নির্দেশবলী সহকারে গণপরিবহনসহ যানচলাচল বন্ধ করে দিয়ে ৫ এপ্রিল থেকে ১১ এপ্রিল পর্যন্ত সারাদেশে লকডাউন ঘোষণা করে প্রজ্ঞাপন জারি করে সরকার। লকডাউনের আগেই বিভিন্ন বিভাগ/দাপ্তরিক কার্যক্রম সীমিত আকারে পরিচালনা ও বিভিন্ন বিভাগের পরীক্ষাসমূহ বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

শেয়ার করুন
পূর্ববর্তী পোষ্ট
পরবর্তী পোষ্ট