ঝিনাইদহে সেই প্রতারক বুরহান উদ্দিন গ্রেফতার

 ঝিনাইদহ প্রতিনিধি-
ঝিনাইদহে ভালোবাসার ফাঁদ পেতে ৩ বছর ঘুরে এক নারী উন্নয়ন কর্মীকে বিয়ে করে তার কাছ থেকে ১১ লাখ টাকা আত্মসাৎ করা প্রতারক বুরহান উদ্দিনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।
গত সোমবার প্রতারণা ও নির্যাতনের শিকার নাজনীন সুলতানা বাদী হয়ে ঝিনাইদহ সদর থানায় মামলা দায়ের করলে মঙ্গলবার তাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। গ্রেফতারকৃত প্রতারক বুরহান উদ্দিন উপজেলার কালীচরণপুর গ্রামের মৃত আব্দুর রশিদের ছেলে
নাজনীন সুলতানা জানান, ২০২০ সালের ১৭ মার্চ প্রেমের ফাঁদে ফেলে তাকে বিয়ে করে বুরহান উদ্দিন। বিয়ের পর কিছুদিন তাদের সম্পর্ক ভালো ছিল। শহরের হামদহ ঘোষপাড়ায় বাসা ভাড়া নিয়ে বসবাস করে আসছিল। নানা ভাবে নাজনীনকে ভুলিয়ে তার কাছে থাকা প্রায় ১১ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয় বুরহান। স্ত্রী নাজনীনের টাকা নিয়ে শহরের মুন্সী মার্কেটে এআর বস্ত্র বিতান নামের একটি দোকানও চালাচ্ছে বুরহান। টাকা নেওয়ার পর আরও টাকা দাবী করে বুরহান। টাকা দিতে না পারলে নাজনীনকে নানা ভাবে নির্যাতন শুরু করে। টাকা না দিতে পারায় গত ১৬ মার্চ তাকে বেধঢ়ক মারধর করে। এ ঘটনার পর সংসার করতে চাওয়ায় তখনও মুখ বুজে সহ্য করেন তিনি। নিজের টাকা আর স্বামীর অধিকার পেতে মানুষের দ্বারে দ্বারে ঘুরেছেন। এরপরও থেমে ছিল না বুরহান। ভাড়া বাসায় এতে প্রতিনিয়ত মারধর ও নির্যাতন করতো। তালাক দেওয়ার জন্য চাপ দিত। উপায় না পেয়ে নাজনীন সুলতানা বাদী হয়ে বুরহান উদ্দিনসহ ৩ জনকে আসামী করে সদর থানায় একটি মামলা দায়ের করে।
নাজনীন সুলতানা বলেন, মামলা দায়েরের পর প্রধান আসামীকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে। এজন্য ঝিনাইদহের পুলিশ সুপার, সদর থানার ওসিকে ধন্যবাদ জানায়। সেই সাথে বাকি আসামীদের যেত দ্রুত গ্রেফতার করা হয় এই অনুরোধ রাখছি।
ঝিনাইদহ সদর থানার ওসি মিজানুর রহমান বুরহান উদ্দিন গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

শেয়ার করুন

প্রকাশকঃ

অফিসঃ হাজী সিরাজুল ইসলাম সুপার মার্কেট, মোহাম্মদপুর মোড়, ছুটিপুর রোড, ঝিকরগাছা, যশোর।

পূর্ববর্তী প্রকাশনা
পরবর্তী প্রকাশনা