শৈলকুপায় ১০ বছরের শিশু ধর্ষণ মুমূর্ষ অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি

শৈলকুপায় ১০ বছরের শিশু ধর্ষণ মুমূর্ষ অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি





সম্রাট হোসেন, শৈলকুপা(ঝিনাইদহ) সংবাদদাতাঃ
 
ঝিনাইদহের শৈলকুপায় ১০ বছরের এক শিশু ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। মঙ্গলবার সকালে উপজেলার নিত্যানন্দনপুর ইউনিয়নের শাহাবাজপুর গ্রামে এঘটনা ঘটে।
আশঙ্কাজনক অবস্থায় শিশুটিকে ফরিদপুর মেডিকেলে ভর্তি করা হয়েছে । প্রচুর রক্তক্ষরণ হয়েছে বলে জানিয়েছে চিকিৎসক। দুই ব্যাগ রক্ত দেওয়া হয়েছে মুমূর্ষ শিশুর। ঘটনার পর থেকে ধর্ষক পলাতক রয়েছে।

এলাকাবাসী সুত্রে জানা যায়, শাহবাজপুর গ্রামের শাহিন এর ১০ বছরের শিশু কন্যা নিজ বাড়ীতে একাই ছিল। এসময় বাবা মা বাড়িতে না থাকার সুযোগে প্রতিবেশী কুদ্দুস বিশ্বাসের ছেলে হাফেজ পাশ করা রানা জোরপূর্বক শিশু কন্যাকে ধর্ষণ করে পালিয়ে যায়। পরে শিশুটিকে উদ্ধার করে প্রথমে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়। অবস্থার অবনতি হলে শিশুটিকে ফরিদপুর মেডিকেলে রেফার্ড করা হয়।

শৈলকুপা থানার অফিসার ইনচার্জ জাহাঙ্গীর আলম বলেন,শিশু ধর্ষণের ঘটনায় ধর্ষক পলাতক রয়েছে।তাকে আটক করার চেষ্টা চলছে
এলাকা বসি প্রতিবেদক কে জানান ধর্ষকে ধরে সর্বোচ্চ শাস্তি  দিতে হবে।

কাদাকাটিতে করোনা রোগীর বাড়ী লকডাউন

কাদাকাটিতে করোনা রোগীর বাড়ী লকডাউন






 আহসান  উল্লাহ  বাবলু  আশাশুনি (সাতক্ষীরা) প্রতিনিধিঃ আশাশুনি উপজেলার কাদাকাটিতে এক করোনা পজিটিভ রোগির বাড়ি লকডাউন করা হয়েছে। মঙ্গলবার রোগির বাড়ি সরকারি ভাবে লকডাউন করা হয়। 
কাদাকাটি ইউনিয়নের দুই নাম্বার ওয়ার্ডের (কাদাকাটি গ্রাম) অনন্ত ঠাকুরের পুত্র রুইদাস ঠাকুর ঢাকায় পড়ালেখা করে। স্থানীয় সূত্রে জানাগেছে, তার ঢাকায় করোনা ধরা পড়লে চিকিৎসা গ্রহনের এক পর্যায়ে ঢাকা থেকে পালিয়ে কয়েকদিন আগে পরিবারের লোকজন তাকে বাড়িতে আনে। এলাকার সাধারণ মানুষ করোনা আতঙ্কে পড়লে বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী অফিসার মীর আলিফ রেজাকে অবহিত করা হয়। তিনি ইউপি চেয়ারম্যান দীপঙ্কর কুমার সরকারকে ব্যবস্থা নিতে বললে গ্রাম পুলিশ পাঠিয়ে তাদের বাড়ি লকডাউন ঘোষণা করা হয়।

প্রতাপনগরের হরিষখালী ভেড়ী বাঁধ চাপানের কয়েক ঘন্টার মধ্যে ভেসে গেছে

প্রতাপনগরের হরিষখালী ভেড়ী বাঁধ চাপানের  কয়েক ঘন্টার মধ্যে ভেসে গেছে




 আহসান  উল্লাহ  বাবলু, আশাশুনি (সাতক্ষীরা) প্রতিনিধিঃ আশাশুনি উপজেলার প্রতাপনগর ইউনিয়নের হরিষখালীতে পাউবোর ভেড়ী বাঁধ সুপার সাইক্লোন আম্ফানের তান্ডবে ভেঙ্গে যাওয়ার ৫৩ দির পর বাঁধা সম্ভব হলেও টিকিয়ে রাখা গেল না। বাঁধের চাপান শেষ করে শ্রমিকরা বাড়িতে ফেরার কিছুক্ষণের মধ্যে জোযারের পানির চাপে চাপান ভেসে গেছে। ফলে দুর্ভাগা প্রতাপনগরবাসী আবারও খোলপেটুয়া নদীর জোয়ার ভাটার সাথে একাকার হয়ে গেল। 
২২ জুন হরিষখালী নামক স্থানে পাাউবোর ভেড়ী বাঁধ ভেঙ্গে বিস্তীর্ণ এলাকা প্লাবিত হয়ে যায়। সেই থেকে গত ৫৩ দিন এলাকার মানুষ চরম দুর্দশার মধ্যে মানবেতর জীবন যাপন করে আসছে। ইউপি চেয়ারম্যান শেখ জাকির হোসেনের নেতৃত্বে এলাকার হাজার হাজার মানুষের স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণে স্বেচ্ছাশ্রমের মাধ্যমে কাজ করে ১৩ জুলাই বাধের ক্লোজারে চাপানের হাজ শেষ করেন। এতে প্রতাপনগরের একটি অংশ জোয়ার ভাটা মুক্ত করা সম্ভব হলো ভেবে মানুষের মধ্যে স্বস্তি ফিরে আসে। কিন্তু নিয়তির নির্মম পরিহাস ভাঙ্গন আটকানোর পর লক্ষ্য করা গিয়েছিল, জোয়ারের চাপে বাঁধটি হালকা ভিতরে চেপে গেছে। অবস্থা দৃষ্টিতে খুবই ঝুঁকিপূর্ণ মনে হওয়ায় জেনারেটরের আলো জ্বালিয়ে কিছু শ্রমিক কাজে নিয়োজিত রাখা হয়। কিন্তু না সকল প্রচেষ্টা ব্যর্থ হয়ে পুনরায় বাঁধটি ভেঙ্গে এলাকা প্লাবিত হয়ে যায়।  এব্যাপারে পানি উন্নয়ন বোর্ডের নিয়োগকৃত সলিউশন ফোর্স্ট লিমিটেড প্রতিষ্ঠানের স্বত্বাধিকারী ঠিকাদার কামরুজ্জামান সোহাগ বলেন, গেলো সোমবার আমি বাঁধ চাপান দিতে চায়নি। ক্লোজার-এর কাজ পূর্বপরিকল্পনা অনুযায়ী মঙ্গলবার আমি বাঁধ চাপান দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম। গত সোমবার পানি উন্নয়ন বোর্ডের উর্দ্ধতন কর্মকর্তাবৃন্দ বাঁধ সংস্কার নির্মাণকাজ পরিদর্শনে আসেন। এসময় ইউপি চেয়ারম্যান শেখ জাকির হোসেন উপস্থিত হন। তাদের সিদ্ধান্ত মত চাপান কাজ সম্পন্ন করা হয়। বাঁধ চাপান দিয়ে পানি আটকানোর পর আমি অনেক শ্রমিক মজুরি দিয়ে জেনারেটর মাধ্যমে রাতেও কাজ চালিয়ে বাঁধ আটকাতে রাখার প্রাণপণ চেষ্টা করি কিন্তু তাতেও শেষ রক্ষা হয়নি।

মাশরাফির করোনা ভাইরাস জয়

মাশরাফির করোনা ভাইরাস জয়






সম্রাট হোসেন, স্টাফ রিপোর্টারঃ

বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজার করোনা ভাইরাস রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে। মাশরাফির অফিয়াস পেজে তার ভক্ত দের উদ্দেশ্যে করোনা মুক্তির পর যা বলেছেন নিচেই তুলে ধরা হলোঃ

আসসালামু আলাইকুম। আশা করি সবাই ভালো আছেন।

আলহামদুলিল্লাহ। আল্লাহর রহমতে ও আপনাদের সবার দোয়ায় আমার কনোরাভাইরাস পরীক্ষার ফল এসেছে নেগেটিভ। আজকে রাতেই ফল জানতে পেরেছি। এই পুরো সময়টায় যারা পাশে ছিলেন, দোয়া করেছেন, অনেকে উদ্বিগ্ন ছিলেন ও নানা ভাবে খোঁজ নিয়েছেন বা নেওয়ার চেষ্টা করেছেন, সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা।

শনাক্ত হওয়ার পর দুই সপ্তাহের বেশি পেরিয়ে গেলেও আমার স্ত্রীর করোনাভাইরাস পরীক্ষার ফল এখনও পজিটিভ। তবে সবার দোয়ায় সে ভালো আছে। তার জন্য দোয়া প্রার্থনা করছি। 

বাসায় থেকে চিকিৎসা নিয়েই আমি সেরে উঠেছি। যারা আক্রান্ত হয়েছেন, সবাই সাহস রাখবেন। আল্লাহর ওপর ভরসা রাখবেন। নিয়ম মেনে চলবেন। 

সবাই নিরাপদে থাকবেন, ভালো থাকবেন। একসঙ্গে থেকে করোনাভাইরাসের সঙ্গে আমাদের লড়াই চালিয়ে যেতে হবে।আল্লাহ সবার সহায় হোন।


কিশরগঞ্জে মুরগীতে ৬ শ’ ৭০ গ্রাম কম দেয়ায় গুনতে হলো জরিমানা

কিশরগঞ্জে মুরগীতে ৬ শ’ ৭০ গ্রাম কম দেয়ায় গুনতে হলো জরিমানা




মো:লাতিফুল আজম
কিশোরগঞ্জ নীলফামারী প্রতিনিধি 


৩ কেজি ৭ শ’ গ্রাম মুরগীতেই বিক্রেতা দিল ৬ শ’ ৭০ গ্রাম কম। ভ্রাম্যমান আদালত অভিযোগ পেয়ে কম দেয়ার সত্যতা পাওয়ায় বিক্রেতাকে গুনতে হল ৫ হাজার টাকা জরিমানা। ঘটনাটি ঘটেছে আজ মঙ্গলবার বিকালে নীলফামারীর কিশোরগঞ্জ উপজেলার থানা গেটের সামনে লাল মিয়ার দোকানে।

এছাড়া ভোক্তা অধিকার আইনে এক হোটেল ব্যবসায়ীকে ৭ হাজার ও স্বাস্থ্য বিধি না মানায় আরও ২ জনকে ১০০ টাকা করে জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমান আদালত। উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি জাকির হোসেন বাবুল আজ দুপুরে বাজার থেকে বাড়ী ফেরার সময় থানা গেট সংলগ্ন লাল মিয়ার মুরগীর দোকান থেকে ৪টি মুরগী ক্রয় করে। এতে বিক্রেতা ৩ কেজি ৭ শ’ গ্রাম হয়েছে বলে টাকা নেন। বাড়ী যাওয়ার সময় ওজনে কম দিয়েছে বলে সন্দেহ হলে তিনি বাড়িতে গিয়ে মুরগী গুলো মেপে পান ৩ কেজি ৩০ গ্রাম। ৩ কেজি ৭ শ’ গ্রাম মুরগীতেই বিক্রেতা দিয়েছে ৬ শ’ ৭০ গ্রাম কম। তিনি তাৎক্ষনিক উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে ভোক্তা অধিকার আইনে অভিযোগ দেন। অভিযোগ পেয়ে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে বিক্রেতা লাল মিয়ার দোকানের ওজনের পাত্র ওজনের চেয়ে কম পান। ওজনে কম দেয়ার সত্যতা পাওয়ায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আবুল কালাম আজাদ মুশা গ্রামের মজিবরের পুত্র লাল মিয়ার ৫ হাজার টাকা জরিমানা করে।
এদিকে কিশোরগঞ্জ বাজারের লিটন হোটেলে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে মেয়াদ উত্তীর্ণ খাদ্য ও অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ পাওয়ায় ওই হোটেলের মালিক আক্কাছ আলীর পুত্র লিটনের ৭ হাজার টাকা জরিমানা করে। এছাড়া মাস্ক না পড়ে বাজারে যত্রতত্র ঘোড়াফেরা করায় স্বাস্থ্য বিধি না মানার দায়ে রাজিব গ্রামের লোকমানের পুত্র পেয়ারুলের ১ শ’ টাকা ও মধ্য রাজিব গ্রামের সহিদুলের পুত্র বুলবুলের ১ শ’ টাকা জরিমানা করে ভ্রাম্যমান আদালত ।
উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জাকির হোসেন বাবুল জানান- ৩ কেজি ৭ শ’ গ্রাম মুরগী কিনে বাড়িতে যাই। সন্দেহ হলে মেপে দেখি ৩ কেজি ৭ শ’ গ্রাম মুরগীতেই ৬ শ’ ৭০ গ্রাম ওজন কম। তাৎক্ষনিক ভোক্তা অধিকার আইনে অভিযোগ দেই। তিনি আরও জানান- ওই মুরগীর দোকানসহ বেশ ক’টি মুরগীর দোকানের দুর্গন্ধে সাধারণ মানুষের চলাচলে বেশ অসুবিধা হচ্ছে।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আবুল কালাম আজাদ জানান- উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ৩ কেজি ৭ শ’ গ্রাম মুরগী ক্রয় করে ৬ শ’ ৭০ গ্রাম ওজনে কম পান। ভোক্তা অধিকার আইনে অভিযোগ পেয়ে ওই দোকানে গিয়ে ওজনে কম দেয়ার সত্যতা পাওয়ায় দোকানের মালিকের ৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। এছাড়া এক হোটেল ব্যবসায়ীর ৭ হাজার ও স্বাস্থ্যবিধি না মানায় ২ জনকে ১ শ’ টাকা করে জরিমানা করা হয়।

অনলাইনে মেস ভাড়া মওকুফের সুপারিশপত্র চালু করছে জবি

অনলাইনে মেস ভাড়া মওকুফের সুপারিশপত্র চালু করছে জবি





জবি প্রতিনিধিঃ
বাড়ি ভাড়া মওকুফের জন্য জগন্নাথ  বিশ্ববিদ্যালয় (জবি) প্রশাসন এর পক্ষ থেকে সুপারিশ পত্র সংগ্রহ করা যাবে। আবেদনপত্রটি অনলাইন প্রক্রিয়ায় সম্পন্ন করা যাবে।    


সোমবার (১৩ জুলাই, ২০২০) জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রকল্যাণ এর পরিচালক ড. মোহাম্মদ আব্দুল বাকী স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়। বিজ্ঞপ্তিটি বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত হয়েছে।


বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়ছে, বিশ্ববিদ্যালয়ের যে সকল ছাত্র-ছাত্রী বাড়ি ভাড়া মওকুফের জন্য সংশ্লিষ্ট বাড়ির মালিকের নিকট বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের সুপারিশসহ আবেদন করতে চান, তারা (https://jnu.ac.bd/dsw/) ওয়েব ঠিকানা থেকে নিজ আইডি নম্বর, বাড়ির মালিকের নাম ও ঠিকানার তথ্য প্রদান করে সুপারিশ পত্রটি সংগ্রহ করতে পারবেন।



বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মেস/বাড়ি ভাড়ার সমস্যা সমাধানের জন্য বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন থেকে প্রায় এক মাস আগে একটি এক সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন করা হয়েছিল। 
কিছুদিন আগে কমিটি থেকে একটি প্রস্তাবনা প্রশাসনকে দেয়া হলে রিপোর্টের ভিত্তিতে ৬ জুলাই ছাত্রকল্যান থেকে একটি বিজ্ঞপ্তি দেয়া হয়, যেখানে বলা হয়েছিল শিক্ষার্থীকে স্বশরীরে উপস্থিত হয়ে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সুপারিশ পত্রটি সংগ্রহ করতে হবে, পরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এ নিয়ে বিতর্কের সৃষ্টি হলে বিজ্ঞপ্তিটি বাতিল করা হয়।
গতকাল আবার বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রকল্যানের পক্ষ থেকে আরেকটি বিজ্ঞপ্তি দেয়া হয় যেখানে বাড়ি ভাড়া মওকুফের জন্য বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন থেকে সুপারিশ পত্র অনলাইনে সংগ্রহের কথা উল্লেখ করা হয়।

 
এ ব্যাপারে ছাত্রকল্যানের পরিচালক মোহাম্মদ আব্দুল বাকীকে বার বার ফোন করেও পাওয়া যায় নি।

হতদরিদ্র ৪পরিবারকে ছাগল দিলো স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন স্বপ্নতরী

হতদরিদ্র ৪পরিবারকে ছাগল দিলো স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন স্বপ্নতরী




মিরসরাই প্রতিনিধি
ছকিনা আক্তার (ছদ্মনাম) দুই মেয়ে আর এক ছেলে নিয়ে সংসার। স্বামী মারা গেছে বছর পাঁচেক আগে। ছেলে মেয়েদের নিয়ে মানুষের বাড়ি কাজ করে চলে তার সংসার। মানুষের সাহায্য সহযোগিতায় চলে তাদের এই পরিবার। এবার উদার মানবিকতা দেখিয়ে স্থানীয় স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন স্বপ্নতরী-৭১ তাকে একটি ছাগল কিনে দেন।

মিরসরাই উপজেলার দুটি ইউনিয়নে হতদরিদ্র ৪পরিবারকে ৪টি ছাগল উপহার দিলো স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন স্বপ্নতরী। বছর ব্যাপী জমাকৃত জাকাত ফান্ডের অর্থ থেকে ৪টি দরিদ্র পরিবারকে এই সহায়তা করা হয়।

তাদের মধ্যে উপজেলার খৈইয়াছরা ইউনিয়নের একজন, কাজির তালুক পাড়ার একজন, একই ইউনিয়নের নাথপাড়ার একজন, ওয়াহেদপুর ইউনিয়নের নিজামপুর এলাকার একজন সহ সর্বমোট ৪টি অস্বচ্ছল এসব পরিবারকে তুলে দেন সংগঠনের সদস্যরা।

স্বপ্নতরীর সাংগঠনিক সম্পাদক মো. মোবারক বলেন, যাকাতের মূল লক্ষ্য হচ্ছে অর্থনৈতিকভাবে অস্বচ্ছল মানুষকে স্বাবলম্বী করা। কিন্তু দুর্ভাগ্যজনক হলেও সত্য যে, আমাদের দেশে যাকাত বিতরণ করা হয় বিচ্ছিন্নভাবে। এতে কারও দারিদ্র্যতা থেকে বিন্দুমাত্রও মুক্তি মেলে না। তাই মানুষকে যাকাতের মাধ্যমে স্বাবলম্বী করে দিতে স্বপ্নতরী-৭১ যাকাত ফান্ড গঠন করে। চারটা পরিবার আজ থেকে চারটা ছাগলের মালিক। এগুলো থেকে তারা ধীরেধীরে বংশবিস্তার ঘটিয়ে নিজেদের কিছুটা অভাব মিটিয়ে স্বাবলম্বী হতে পারবে।

তিনি জানান, আমাদের শুভাকাঙ্ক্ষীসহ বিভিন্ন মাধ্যম থেকে এসব জাকাত সংগ্রহ করি। এবং সংঠনের সদস্যরাও নিজেদের পরিবার থেকে জাকাতের টাকা সংগ্রহ করে একটা ফান্ড তৈরি করি। এবং সে টাকা দিয়ে এই কাজটি করতে আমরা সমর্থ হই।

কেশবপুর উপনির্বাচনে শাহীন চাকলাদার বিপুল ভোটে জয়ী, শুভেচ্ছা জ্ঞাপন

কেশবপুর উপনির্বাচনে শাহীন  চাকলাদার  বিপুল ভোটে জয়ী, শুভেচ্ছা জ্ঞাপন





স্টাফ রিপোর্টারঃ আজ (১৪ জুলাই)  মঙ্গলবার সারাদিন যশোর জেলার কেশবপুর উপজেলার উপনির্বাচনের ভোট গ্রহণ চলে। ভোট গ্রহণ শেষে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী যশোর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক শাহীন চাকলাদার ১ লক্ষ ২৪ হাজার ২ শত ৪ ভোট পেয়ে বেসরকারি ভাবে বিজয় লাভ করেছেন। 
তার নিকটতম প্রার্থী জাতীয় পার্টির মনোনীত হাবিবুর রহমান লাঙ্গল প্রতীকে ১৬৭৮ ভোট  পেয়েছেন। ব্যাপক ভোট ব্যবধানে বিজয় লাভ করায় নৌকা প্রকীকের প্রার্থী যশোর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক শাহীন চাকলাদার কে অভিনন্দন ও শুভেচছা জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন ঝিকরগাছা উপজেলা আওয়ামী সাংস্কৃতি ফোরামের সভাপতি , ১ নং গঙ্গানন্দপুর ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান বর্তমান অত্র ইউনিয়নের এমপি প্রতিনিধি মোঃ আমিনুর রহমান, গঙ্গানন্দপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষানুরাগী সদস্য ও ১ নং গঙ্গানন্দপুর ইউনিয়ন আওয়ামী সাংস্কৃতি ফোরামের সভাপতি প্রভাষক মোঃ মহসীন আলী প্রমুখ।

সাবেক মন্ত্রী ও বিএনপি নেতা শাহজাহান সিরাজ আর নেই

সাবেক মন্ত্রী ও বিএনপি নেতা  শাহজাহান সিরাজ আর নেই








ডা.এম.এ.মান্নান,টাংগাইল জেলা প্রতিনিধি:
স্বাধীনতার ইশতেহার পাঠকারী, স্বাধীনতা সংগ্রাম ও মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক চার বারের সাবেক সংসদ সদস্য ও সাবেক মন্ত্রী শাহজাহান সিরাজ আর নেই। ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন।

আজ  মঙ্গলবার, ১৪ জুলাই ২০২০ খ্রি.বিকেল ৩.৩০ মিনিটে ঢাকা রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। তিনি দীর্ঘদিন ধরে ক্যানসারে ভুগছিলেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৭৭ বছর।
বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী তার মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছেন। 

১৯৪৩ সালের ১ মার্চ টাঙ্গাইলের কালিহাতীতে জন্মগ্রহণ করেন শাহজাহান সিরাজ। ১৯৬২ সালে হামিদুর রহমান শিক্ষা কমিশন বিরোধী আন্দোলনে সম্পৃক্ত হওয়ার মধ্যদিয়ে শাহজাহান সিরাজ ছাত্র-রাজনীতিতে প্রবেশ করেন। সেই সময় তিনি টাঙ্গাইলের করটিয়া সা’দত কলেজের ছাত্র ছিলেন। এরপর তিনি ছাত্রলীগের মাধ্যমে ছাত্র-রাজনীতিতে উঠে আসেন। ১৯৬৪-৬৫ এবং ১৯৬৬-৬৭ দুই মেয়াদে তিনি দুইবার করটিয়া সা’দাত কলেজের ছাত্র সংসদের ভিপি নির্বাচিত হয়েছিলেন।

একজন সক্রিয় ছাত্রনেতা হিসেবে তিনি ১১ দফা আন্দোলন এবং ১৯৬৯ সালের গণঅভ্যুত্থানে অংশগ্রহণ করেন। এর পর ১৯৭০-৭২ মেয়াদে অবিভক্ত ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। তিনি ছিলেন ‘স্বাধীন বাংলা বিপ্লবী পরিষদ’ (যার অন্য নাম নিউক্লিয়াস) এর সক্রিয় কর্মী, ছাত্র সংগ্রাম পরিষদের নেতা।

মুক্তিযুদ্ধের পর সর্বদলীয় সমাজতান্ত্রিক সরকার গঠনের পক্ষে অবস্থান নিয়ে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জাসদ) গঠনে ভূমিকা পালন করেন, যা ছিলো স্বাধীন বাংলাদেশের প্রথম বিরোধী দল। জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের প্রতিষ্ঠাতা সহকারী সাধারণ সম্পাদক হয়েছিলেন শাহজাহান সিরাজ। পরবর্তীতে জাসদে সভাপতি নির্বাচিত হয়েছিলেন। জাসদের মনোনয়নে ৩ বার তিনি জাতীয় সংসদের টাঙ্গাইল-৪ আসন থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন।শাহজাহান সিরাজ ১৯৯৫ সালে বেগম খালেদা জিয়ার নেতৃত্বাধীন বিএনপিতে যোগ দেন। তিনি বিএনপির মনোনয়নেও একবার একই আসন থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। বেগম খালেদা জিয়া সরকারের শেষ পর্যায়ের দিকে নৌপরিবহনমন্ত্রী হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেন।

শাহজাহান সিরাজ বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রাম ও মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক। মুক্তিযুদ্ধের সময় যাদের ‘চার খলিফা’ বলা হতো শাহজাহান সিরাজ ছিলেন তাদেরই একজন। ১৯৭১ সালের ১ মার্চ তিনি সিরাজুল আলম খান, শেখ ফজলুল হক, আব্দুর রাজ্জাক, তোফায়েল আহমেদ, আবদুল কুদ্দুস মাখন, নূরে আলম সিদ্দিকী, আ স ম আবদুর রব প্রভৃতি ছাত্রনেতাদের পাশাপাশি স্বাধীন বাংলা ছাত্র সংগ্রাম পরিষদ গঠনে অগ্রণী ভূমিকা রেখেছিলেন।

১৯৭১ সালের ২ মার্চ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বটতলায় স্বাধীন বাংলাদেশের পতাকা উত্তোলন করেন আ স ম আবদুর রব। সেখান থেকেই পরবর্তী দিনে স্বাধীনতার ইশতেহার পাঠের পরিকল্পনা করা হয়। সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ৩ মার্চ ১৯৭১ পল্টন ময়দানে বিশাল এক ছাত্র জনসভায় বঙ্গবন্ধুর সামনে স্বাধীনতার ইশতেহার পাঠ করেছিলেন শাহজাহান সিরাজ। এরপর যুদ্ধ শুরু হলে তিনি সশস্ত্র যুদ্ধ চলাকালীন সময়ে ‘বাংলাদেশ লিবারেশন ফোর্স’ (বিএলএফ) বা মুজিব বাহিনীর কমান্ডার হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেছেন।

কেশবপুর উপনিবার্চনে বিপুল ভোটে জয়লাভ করেছেন নৌকার প্রার্থী শাহীন চাকলাদার

কেশবপুর উপনিবার্চনে বিপুল ভোটে জয়লাভ করেছেন নৌকার প্রার্থী শাহীন চাকলাদার


  
মোরশেদ আলম ভ্রাম্যমান (যশোর) প্রতিনিধিঃ
 যশোর-৬ (কেশবপুর) আসনের ১৪ জুলাই উপনির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে ,এআসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী যশোর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহীন চাকলাদার ও জাতীয় পার্টির মনোনীত প্রার্থী হাবিবুর রহমান। করোনা পরিস্থিতিতে বিএনপির নির্বাচন বর্জন করায় বিএনপির মনোনীত প্রার্থী আলহাজ্ব আবুল হোসেন আজাদ তার নির্বাচনী তৎপরতা বন্ধ করে দিয়েছেন।

এ আসনে ১৯৭১- ২০০১ ভোট হয়েছে১০বার। আওয়ামী লীগ নৌকা প্রতীকে ৬ বার, বিএনপির ধানের শীষ প্রতীক ১ বার, জাতীয় পাটি্র লাঙ্গল প্রতীক ০১ বার, স্বতন্ত্রঃ১ বার, জামাত দাড়িপাল্লা প্রতীক ০১ বার জয় লাভ করে। 
নৌকা প্রতীক ১৯৭৩,১৯৯৬,২০০১,২০০৮
,২০১৪,২০১৯ সালে জয় লাভ করে।
টানা ষষ্ঠবার ও সপ্তম বারের মত নৌকা প্রতীক জয় লাভ করেন

 আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী ও যশোর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহীন চাকলাদার ইতিমধ্যে কেশবপুরের মানুষের কাছে বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছেন। তার জনপ্রিয়তার কাছে দলে কোন গ্রুপিং বা লবিং নেয়। ইতিপূর্বে কেশবপুরে কোন সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের কোনো নেতাকর্মী স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণ করতে দেখা যায়নি।
বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা যায় আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী যশোর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহীন চাকলাদারের নেতা কর্মী ও ভোটাদের জয় গান, পোষ্টার আর ফেস্টুন দেখা যায়। অপর দিকে জাতীয় পার্টির মনোনীত প্রার্থী হাবিবুর রহমানের লাঙ্গলের তেমন প্রচার দেখা মেলেনি। নেই তেমন কর্মী আর ভোটার।তাই ৭৯টি ভোট কেন্দ্রের সব কয়টিতে জয়ী হন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী যশোর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহীন চাকলাদার। 
কেশবপুর উপজেলার ১১টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভা নিয়ে যশোর-৬ আসনটি গঠিত। এ আসনে মোট ভোটার ২ লাখ ৩ হাজার ১৮ জন। এরমধ্যে এক লাখ দুই হাজার একশ ২২জন পুরুষ ভোটার আর নারী ভোটার হলো এক লাখ ৮শ’ ৯৬ জন। ৭৯টি ভোট কেন্দ্রের ৩শ’ ৭৪ ভোটকক্ষের ৭৯জন প্রিজাইডিং অফিসার, ৩৭৪ জন সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার ও ৭৪৮ জন পোলিং অফিসার দায়িত্ব পালন করবেন।
এ নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে প্রশাসনের পক্ষ থেকে সকল প্রকার প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে। গত ১১ জুলাই প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নুরুল হুদা কেশবপুরে আইন-শৃঙ্খলা সংক্রান্ত সভা করে গেছেন।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নুসরাত জাহান সাংবাদিকদের জানান, সুষ্ঠু নির্বাচনের স্বার্থে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। ৭৯টি ভোট কেন্দ্রে ১৮ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট, র‌্যাব, পুলিশ, আনসার ব্যাটালিয়ন মোতায়েন করা হয়েছে।
এছাড়া উপ-নির্বাচন উপলক্ষে সোমবার সকালে কেশবপুর পাইলট মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয় মাঠে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর ব্রিফ্রিং প্যারেড অনুষ্ঠিত হয়েছে।

 উক্ত ব্রিফ্রিং প্যারেডে প্রধান অতিথি হিসেবে দিকনির্দেশনামূলক বক্তব্য প্রদান করেন যশোরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) মোহাম্মদ সালাউদ্দিন শিকদার। এসময় উপস্থিত ছিলেন সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার সোয়েব আহমেদ খান (মনিরামপুর সার্কেল), কেশবপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ জসীম উদ্দীন প্রমুখ।

বিভিন্ন কেন্দ্রে সকালে সরেজমিনে গিয়ে ভোটার দের সাথে কথা বলে জানা যায় নৌকার প্রার্থী শাহীন চাকলাদারের জয় ঘোষণা যেন সময়ের অপেক্ষা। সকাল নয়টায় ভোটগ্রহণ শুরু হয়, চলেছে  বিকাল পাঁচটা পর্যন্ত।
কেশবপুর উপ- নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী শাহীন চাকলাদার এবং জাতীয় পার্টির  হাবিবুর রহমান প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। প্রতি ভোটকেন্দ্রে শাহীন চাকলাদারের এজেন্টদের সক্রিয় দেখা যায়। তবে জাতীয় পার্টির কোনো এজেন্ট খুবএকটা দেখা যায়নি।

সকাল থেকে বিভিন্ন কেন্দ্রে ভোটারদের বেশ উপস্থিতি দেখা গেছে। এখন পর্যন্ত কোথাও গোলযোগের খবর পাওয়া যায়নি, আইনশৃংখলা বাহিনী তৎপর রয়েছে। বিকাল ৫ টার পর থেকে ভোট গননার কাজ শুরু হয়েছে
 সবকয়টি কেন্দ্রের ফলাফল গণনা শেষে দেখাযায়  বিপুল ভোটে এগিয়ে আছেন নৌকার প্রার্থী জননেতা জনাব শাহীন চাকলাদার। এই আসনে মোট ভোটার ২ লাখ ৩ হাজার ১৮ জন, যার মধ্য নৌকার প্রার্থী জননেতা জনাব শাহীন চাকলাদার ১ লক্ষ ২৪ হাজার ২০০ চার ৪ ভোট পেয়ে জয় লাভ করেন।এবং 
ধানের শীষ ২০১২ ভোট, লাঙ্গল ১৬৭৮ ভোট পেয়েছে
বাতিল হয়েছে১৩৭৪ ভোট।
সর্বমোট ভোট গ্রহণ হয়েছে ১২৯০৬৭ টি


কচুয়া নতুন করে তিন জনের করোনা ভাইরাস সনাক্ত

কচুয়া নতুন করে তিন জনের করোনা ভাইরাস সনাক্ত




স্টাফ রিপোর্টার বাগেরহাট শ্যামা সাহাঃ
কচুয়া করোনা রোগে নতুন করে ৩ জন সনাক্ত করা হয়েছে, গত ১২ ই জুলাই রবিবার এক সংবাদ সূএে জানা যায় খুলনা মেডিকেল কলেজের ল্যাবে যে নমুনা পরীক্ষা করার জন্যে পাঠানো হয়ে ছিলো তার মধ্যে কচুয়া নতুন করে তিন জনের করোনা ভাইরাস সনাক্ত হয়েছে। খুলনা মেডিকেল কলেজের আরটি- পিসি আর ল্যাবে মোট ২৮ জনের করোনা ভাইরাস সনাক্ত হয়। যার মধ্যে কচুয়ার রয়েছে ৩ জন। ১২ ই জুলাই এ সকল নমুনা পরীক্ষার পর আজ রাত ৯টার সময় এ তথ্য নিস্চিত করেন খুলনা মেডিকেল কলেজের উপাধ্যক্ষ ডা. মেহেদি নেওয়াজ। কচুয়া থেকে A.T.V সংবাদ প্রতিনিধি ডা. মেহেদি নেওয়াজের কাছে এর সত্যতা জানতে চাইলে তিনি বলেন ১২ ই জুলাই রবিবার খুলনা মেডিকেল কলেজের পিসি আর মেশিনে মোট ১০০ জনের নমুনা পরীক্ষায় দেওয়া ছিলো ৭০ টি। তাদের মধ্যে মোট ২৮ জনের নমুনা পরীক্ষার রির্পোট পজিটিভ হয়েছে।

মোংলা বন্দরের শুদ্ধাচার পুরস্কার পেলেন মোঃ মাসুম বিল্লাহ

মোংলা বন্দরের শুদ্ধাচার পুরস্কার পেলেন মোঃ মাসুম বিল্লাহ





মোঃএরশাদ  হোসেন  রনি, মোংলাঃ
 কর্মক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ অবদানের জন্য মোংলা বন্দরের শুদ্ধাচার পুরস্কার- ২০২০ অর্জন করেছেন সহকারী ব্যবস্থাপক মোঃ মাসুম বিল্লাহ। গত ১৩ জুলাই সোমবার সকালে মোংলা বন্দরের প্রশাসনিক  কার্যালয়ের অফিস আদেশে পুরস্কার প্রাপ্ত কর্মর্তার নাম প্রকাশ করা হয়। মাসুম বিল্লাহ দায়িত্ব পালনে অনন্য সততা, দক্ষতা ও সৃজনশীলতা প্রদর্শনের কারণে ২০১৯-২০ সালের শুদ্ধাচার পুরস্কার পেয়েছেন।

সোমবার সকালে মোংলা বন্দরের সম্মেলন কক্ষে বন্দর কর্তৃপক্ষ আয়োজিত সম্মাননা অনুষ্ঠানে বন্দর চেয়ারম্যান রিয়াল এডমিরাল এম শাহজাহান এই পুরস্কার তুলে দেন। সেই সময় আরো উপস্থিত ছিলেন মোংলা বন্দরের সদস্য ( অর্থ ) ইয়াসমিন আফসানা, সদস্য (হারবার ও মেরিন) ক্যাপ্টেন মোহাম্মদ আলী, পরিচালক ( প্রশাসন ) মোঃ গিয়াস উদ্দিন (উপসচিব), হারবার মাস্টার শেখ ফখরউদ্দিন, প্রধান নিরাপত্তা কর্মকর্তা লেঃ কমান্ডার বি এম নূর মোহাম্মদ, সচিব ওহিউদ্দিন চৌধুরী, প্রধান অর্থ ও হিসাব রক্ষণ কর্মকর্তা মোঃ সিদ্দিকুর রহমান, প্রধান প্রকৌশলী শেখ শওকত আলী , ডেপুটি ট্রাফিক ম্যানেজার মোঃ সোহাগ প্রমূখ। পুরস্কার হিসেবে ক্রেস্ট, সনদ পত্র ও এক মাসের মূল বেতনের সমপরিমাণ অর্থ  মোঃ মাসুম বিল্লাহর এর হাতে তুলে দেয়া হয়। এছাড়া মোংলা বন্দরের উচ্চমান সহকারি মোঃ আরমান রশিদ সানিও শুদ্ধাচার পুরস্কার পান বলে জানা যায়।  উল্ল্যেখ্য শুদ্ধাচার চর্চায় কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের উৎসাহিত করতে ২০১৭ সাল থেকে মোংলা বন্দর এর অধীনস্থ কর্মকর্তা কর্মচারীদের মাঝে শুদ্ধাচার পুরস্কার প্রদান করা হচ্ছে।

নীলফামারী কিশোরগঞ্জে পল্লীবন্ধু হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের প্রথম মৃত্যু বার্ষিকী

নীলফামারী কিশোরগঞ্জে পল্লীবন্ধু হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের প্রথম মৃত্যু বার্ষিকী


 
মো: লাতিফুল আজম কিশোরগঞ্জ নীলফামারী প্রতিনিধি:


নীলফামারীর কিশোরগঞ্জে আজ  মঙ্গলবার সাবেক রাষ্ট্রপতি পল্লীবন্ধু হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের প্রথম মৃত্যু বার্ষিকী পালন করা হয়েছে। এ উপলক্ষে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।

গ্রামীণ ব্যাংক সংলগ্ন উপজেলা জাতীয় পার্টির কার্যালয়ে দুপুরে এ দোয়া মাহফিল হয়। উপস্থিত ছিলেন উপজেলা জাতীয় পার্টির আহ্বায়ক ও এমপি প্রতিনিধি রেজাউল আলম স্বপন, বড়ভিটা ইউপি চেয়ারম্যান ও বড়ভিটা ইউপি জাপা সভাপতি ফজলার রহমান, পুটিমারী ইউপি জাপা সভাপতি আঃ জলিল, সাধারণ সম্পাদক রুহুল আমিন, নিতাই ইউপি জাপা সভাপতি সহিদুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক ডাঃ দুলাল, বাহাগিলী ইউপি জাপা সাধারণ সম্পাদক মশিয়ার প্রমুখ। উপজেলা জাতীয় পার্টির আয়োজনে এতে উপজেলা জাতীয় পার্টি ও অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরাও উপস্থিত ছিলেন। সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে এ দোয়া মাহফিল করা হয়েছে।

চৌগাছায় ২ নং পাশাপোল ইউনিয়ন যুবলীগের বৃক্ষ রোপণ

চৌগাছায় ২ নং পাশাপোল ইউনিয়ন যুবলীগের বৃক্ষ রোপণ


 
চৌগাছা উপজেলা প্রতিনিধিঃ

প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার  নির্দেশে সারা দেশ ব্যাপি বৃক্ষ রোপণ কর্মসূচির অংশ হিসেবে  চৌগাছা উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক দেবাশীষ মিশ্র জয় ও যুগ্ন আহ্বায়ক সৈয়দ শরিফুল ইসলামের দিক নিদেশনায় ২ নং পাশাপোল ইউনিয়ন যুবলীগ ১ নং ওয়ার্ডে বৃক্ষ রোপন কর্মসূচি পালন করে। এ সময় উপস্থিত ছিলেন পাশাপোল ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ও আগামীর যুবলীগ নেতা প্রভাষক মোঃ সবুজ হোসেন, ২ নং পাশাপোল ইউনিয়ন 
আওয়ামীলীগের ৫ নং ওয়ার্ডের সভাপতি এ বি এম শরিফ বাসার  ২ নং পাশাপোল ইউনিয়ন যুবলীগ নেতা আজিজুর রহমান শিমুল , মোঃ আজিম, মোঃ উজ্জল, মোঃ বিকুল হোসেন, ডাঃ এ বি এম রুহুল আমিন,  ফজলু, সোহারব হোসেন,চঞ্চল হোসেন, মোঃ জামাল উদ্দীন, মারুফ হোসেন, আমিরুল ইসলাম প্রমুখ।

শৈলকুপায় বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে নবম শ্রেণির এক ছাত্রী কে ধর্ষণ

শৈলকুপায় বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে নবম শ্রেণির এক ছাত্রী কে ধর্ষণ





সম্রাট হোসেন, শৈলকুপা (ঝিনাইদহ) সংবাদদাতাঃ

ঝিনাইদহের শৈলকুপায় বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ৯ম শ্রেণীর পড়ুয়া এক স্কুল ছাত্রী(১৬) কে ধর্ষণ করার ঘটনা ঘটেছে। এঘটনায় অভিযুক্ত ধর্ষক জুয়েল রানা (২২) কে গ্রফতার করেছে পুলিশ।ঘটনাটি পৌর এলাকার বালিয়াডাঙ্গা গ্রামে। ধর্ষক ওই গ্রামের রশিদ মন্ডলের ছেলে। এজাহার সুত্রে জানা যায়, শিশুকাল থেকে ওই ছাত্রী তার নানী বাড়িতে বসবাস করে আসছে। সে উপজেলার কাতলাগাড়ী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে পড়াশোনার সুবাদে দুজনের মাঝে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। এরই সুত্র ধরে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে গত ৯/৭/২০ (বৃস্পতিবার) সকালে জুয়েল তার বাড়িতে ডেকে নিয়ে যায়। বাড়িতে কেউ না থাকায় ছাত্রীর ইচ্ছার বিরুদ্ধে ধর্ষণ করে জুয়েল 
একই দিন রাত ৮টার দিকে ধর্ষকের বাবা-মা বাড়িতে আসলে ধর্ষক জুয়েল তার পূর্ব পরিচিত পৌর এলাকার সাতগাছি গ্রামে জনৈক মিলন হোসেন নামে একজনের বাড়িতে নিয়ে ওই ছাত্রীকে সারারাত ধর্ষণ করে। পরের দিন সকাল ৭টার দিকে উপজেলার কাতলাগাড়ী নদীর ঘাটে নিয়ে যায়। ধর্ষক তার খালাতো ভাইকে ডাকার কথা বলে সুকৌশলে সেখানে ওই ছাত্রীকে রেখে পালিয়ে যায়। ওই ছাত্রী উপায়ন্তর না দেখে জুয়েলের বাড়িতে ফিরে যায়। ঘটনার বিস্তারিত ধর্ষকের পরিবারকে খুলে বললে তারা খারাপ আচরণ করে ওই ছাত্রীকে বাড়ি থেকে বের করে দেয়। পরে ওই ছাত্রী শৈলকুপা থানায় গিয়ে পুলিশকে বিস্তারিত খুলে বলে।

তার নানী বাদী হয়ে ধর্ষকের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করেন। যার মামলা নং-০৮, তারিখ : ১১-৭-২০ ইং। এঘটনায় ওই দিনই এসআই তরিকুল ইসলাম ধর্ষককের নিজ বাড়ি থেকে হাতেনাতে গ্রেফতার করে।

শৈলকুপা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) জাহাঙ্গীর আলম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে স্কুল পড়–য়া ছাত্রী ধর্ষণের ঘটনায় মামলার একমাত্র আসামী ধর্ষক জুয়েলকে গ্রেফতার করে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

অসহায় মানুষের পাশে ওয়ার্ল্ড ফুড কর্মসূচী

অসহায় মানুষের পাশে ওয়ার্ল্ড ফুড কর্মসূচী




মীরকাশেম, কক্সবাজারঃ
কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলার ফাঁসিয়াখালী ইউনিয়নে WFP কতৃক প্রদত্ত সার্ভ বাংলাদেশ এর মাধ্যমে সহায়তা প্রদানের আওতায় ইউনিয়নেরx  প্রায় ১৭০০ জনের কাছে দ্বিতীয় ধাপে  সাহায্য প্রদান করা হয়েছে। প্রথম ধাপে প্রত্যেক কে ৩০ কেজি করে চাউল ও ৫ কেজি করে বিস্কুট, দ্বিতীয় ধাপে প্রত্যেক কে নগদ সাড়ে চার হাজার টাকা করে প্রধান করা হয়েছে।ইউনিয়নের  ১ থেকে ৯ নং ওয়ার্ডে ও আজ জনসাধারণের কাছে এই সাহায্য প্রদান করা হয়েছে। চকরিয়া পেকুয়ার সংসদ সদস্য উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ্ব জাফর আলম এমপি
ফাঁসিয়াখালী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান, উপজেলা চেয়ারম্যান এসোসিয়েশনের সভাপতি ও চকরিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব গিয়াস উদ্দিন চৌধুরী উপস্থিত থেকে এই সাহায্য জনগণের মাঝে বিতরণ করেন।  এসময় সিনিয়র সাংবাদিক জহিরুল ইসলাম, সার্ভ বাংলাদেশের আঞ্চলিক সমন্বয়ক কাজী মাকসুদুল আলম মোহিত, প্রকল্প ব্যাবস্থাপক ফরিদা ইয়াসমিন, বাংলাদেশ তৃণমূল সাংবাদিক কল্যাণ সোসাইটি চকরিয়া উপজেলা শাখার সভাপতি সাংবাদিক আবুল মনসুর মোঃ মহসিন, ফাঁসিয়াখালী ইউনিয়নের বিট পুলিশ কর্মকর্তা ও চকরিয়া থানার পুলিশ পরিদর্শক মহসিন তালুকদার,  সহকারী পুলিশ পরিদর্শক মোঃ কামাল উদ্দিন সহ স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও গণ্য মান্য ব্যাক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

দূর্বার তারুণ্য ও আবু আবিদ

দূর্বার তারুণ্য ও আবু আবিদ





নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

দূর্বার তারুণ্য নামক এক সামাজিক সংগঠন এর জন্ম হয়েছে খুব বেশি দিন হয়নি।কিন্তু এর কার্যক্রম দেশব্যাপী ছড়িয়ে পড়েছে।কখনও ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ, হঠাৎ করে বিরিয়ানির প্যাকেট নিয়ে রাস্তায় নেমে পড়া কিংবা ঈদের রেডি ফুড মধ্যবিত্তদের বাসায় গোপনে পৌঁছে দেয়ার মধ্য দিয়ে চমক দিয়ে যাচ্ছে দূর্বার তারুণ্য দেশজুড়ে।দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চল থেকেও তরুণরা যুক্ত হচ্ছে এ সংগঠনের সাথে। দূর্বার তারুণ্যের বর্তমান চমক হল- যোদ্ধা নামক ফেসবুক লাইভ অনুষ্ঠান। এসকল চমক কিংবা পরিকল্পনা যার মাধ্যমে সংঘটিত হয় তিনি হলেন মুহাম্মদ আবু আবিদ। দূর্বার তারুণ্যের স্বপ্নদ্রষ্টা মুহাম্মদ আবু আবিদের পরিচালনায় ও সঞ্চালনায় সপ্তাহে অন্তত ৪ দিন সন্ধ্যা সাড়ে ৭ টায় অনুষ্ঠিত হয় যোদ্ধা নামক অনুষ্ঠানটি। অনুষ্ঠানটি ইতিমধ্যে ই ব্যাপক জনপ্রিয়তা অর্জন করেছে। এ সম্পর্কে মুহাম্মদ আবু আবিদ বলেন, আমাদের যোদ্ধা কোন সেলিব্রিটি শো না।তাও আমরা মাঝে মাঝে কিছু সেলিব্রিটি কে আনি, তার কারণ ২ টা।প্রথমত,আমরা সকলকে জানাতে চাই যে,সেলিব্রিটি হতে গেলেও যুদ্ধের প্রয়োজন।দ্বিতীয়ত, আমরা চাই তরুণ সমাজকে অনুপ্রাণিত করতে, তারা সেলিব্রিটি দের কথা বেশি মানার চেষ্টা করে,তাই। আর আমি মনে করি প্রতিটা মানুষ তার নিজ নিজ জায়গা থেকে এক একজন যোদ্ধা।শুধু সবার যুদ্ধক্ষেত্র টা ভিন্ন। এ যুদ্ধ চলতে থাকে মৃত্যু পর্যন্ত।তাই সবাইকে যদি এটা বুঝানো যায়,প্রতিটা জায়গায় তেই যোদ্ধা আছেন,তাহলে আমার মনে হয় কেউ হতাশ হবেন না।তাই আমার এ ক্ষুদ্র প্রচেষ্টা।
এ পর্যন্ত যোদ্ধা অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করা অতিথিরা হলেন- এমপি নজরুল ইসলাম বাবু, এমপি শিরীন আহমেদ, এমপি খাদিজাতুল আনোয়ার সনি, এমপি তামান্না নুসরাত বুবলী,সাবেক সাংসদ সাবরিনা আক্তার তুহিন, মারুফা আক্তার পপি, মোটিভেটর ঝংকার মাহবুব,মিস এশিয়া শান্তা পাল,লেখক কিঙ্কর আহসান, কথাসাহিত্যিক তানভীর জাহান চৌধুরী,গায়ক সাদমান পাপ্পু, চবি এর সহকারী প্রক্টর মারিয়াম ইসলাম লিজা ও রেজাউল করিম, হাসিনা মহিউদ্দিন,চবি এর প্রভোস্ট ড. লায়লা খালেদা, এড. শেখ ইফতেখার সাইমুল চৌধুরী, খোরশেদ আলম সুজন,আলতাফ হোসেন, ওসি প্রণব চৌধুরী, মানবিক পুলিশ শওকত হোসাইন,ডাঃ হাবিবুর রহমান,পৌর মেয়র আশরাফুল আলম লিটন,গোলাম রাব্বানী,বাবর উদ্দিন সাগর, সাবরিনা চৌধুরী, কমেডিয়ান শিহাব হাসান নিওন সহ আরও উল্লেখযোগ্য ব্যক্তিবর্গ।

বিশেষ সূত্রে খবর পাওয়া গেছে সামনের পর্ব গুলোতে থাকছেন নায়ক,গায়ক,কমেডিয়ান, রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব ও উল্লেখযোগ্য ব্যক্তিবর্গ।

দেশের সামগ্রিক উন্নয়নে অনলাইন গণমাধ্যম গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে - রেজাউল করিম চৌধুরী

দেশের সামগ্রিক উন্নয়নে অনলাইন গণমাধ্যম গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে - রেজাউল করিম চৌধুরী






রিয়াজুল করিম রিজভী প্রতিনিধি চট্টগ্রামঃ

চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামীলীগের সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ মনোনীত চসিক মেয়র পদপ্রার্থী বীর মু্ক্তিযোদ্ধা আলহাজ এম. রেজাউল করিম চৌধুরী বলছেন, দেশের সামগ্রিক উন্নয়নে অনলাইন গণমাধ্যম গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে। অনলাইন গণমাধ্যম মুহুর্তের সংবাদ মুহুর্তে প্রকাশ করে জনগণের প্রত্যাশা পূরণ করছে।এমএসকে নিউজের দ্বিতীয় প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।  

এমএসকে নিউজের প্রকাশক চসিক কাউন্সিলর আলহাজ লায়ন এম আশরাফুল আলমের সভাপতিত্বে  ও সম্পাদক অধ্যক্ষ এম. সোলাইমান কাসেমীর সঞ্চালনায় মঙ্গলবার ১৪ জুলাই  বার্তা ও সম্পাদকীয় কার্যালয়ে ২য় প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, হলুদ সাংবাদিকতা, মিথ্যা অপপ্রচার তথ্যবিকৃত সংবাদ এর বিপরীতে ব্যতিক্রমী, গঠনমূলক, সৃজনশীল প্রচারণায় এমএসকে নিউজ ইতিমধ্যে সর্বমহলে প্রশংসিত হয়েছে। যা অনলাইন সংবাদমাধ্যমে অনুকরণীয়। অনলাইন গণমাধ্যমকে আরো দায়িত্বশীল হওয়ার পরামর্শ দেন বক্তারা।

প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন চবি আরবি বিভাগের প্রফেসর ড. আ.ম. কাজী হারুন উর রশীদ, চট্টগ্রাম অনলাইন প্রেস ক্লাবের সভাপতি অধ্যক্ষ মুকতাদের আজাদ খান, ৬নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ সভাপতি মো. শামসুল আলম, ব্যবসায়ী আলহাজ আবু সৈয়দ, এমএসকে নিউজের উপদেষ্টা এডভোকেট ধৃতিমান আইচ, সৈয়দ কাবেদুর রহমান কচি,অধ্যক্ষ ডা. আনোয়ার হোসেন মানিক, এমএসকে নিউজের নির্বাহী সম্পাদক নুর মোহাম্মদ, মো. হারুন, ওয়াহেদ হোসেন, সাংবাদিক এস.ডি.জীবন, মো. আলমগীর,আব্দুর রাজ্জাক, ইউসুফ মাহমুদ মিনার, আবু সাঈদ সুমন, মো. সাইফুদ্দিন, আনোয়ার হোসেন, আলী বেলাল শাহেদ, জামাল হোসেন, দেলোয়ার হোসেন বাচা, জাবেদুল ইসলাম জাবেদ, মহিউদ্দিন মানিক, নুরুন্নবী শাহেদ,মো. রাকিব, মো. ইরাদ, আব্দুল্লাহ আল আহসান হিমেল, দেলোয়ার হোসেন সুমন, আব্দুল আজিজ, মুহিদ রাজু প্রমুখ।

সবশেষে কেক কেটে মোনাজাতের মাধ্যমে দ্বিতীয় প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উৎসব উদযাপন করা হয়।

শৈলকুপায় কোটি টাকার রাস্তা ৬ মাসেই শেষ

শৈলকুপায় কোটি টাকার রাস্তা ৬ মাসেই শেষ





সম্রাট হোসেন, শৈলকুপা( ঝিনাইদহ) সংবাদদতাঃ

ঝিনাইদহ জেলার শৈলকুপা উপজেলার গাড়াগঞ্জ বাস স্টাণ্ডে ৩০০ মিটার মহাসড়ক কোটি টাকা খরচ করে ৬ মাস আগে তৈরি করা হয়।কিন্তুু এত টাকা খরচ করে ৩০০ মিটার নতুন মহাসড়ক তৈরি করা হলেও তা ৬ মাসের মাথায় এখন ছোট খাট একটা পুকুর হয়ে গেছে। এলকাবাসি প্রতিবেদক জানান যে রাস্তা পূর্ণ নির্মাণ করার সময় ব্যাপক অনিয়ম ও দূর্নীতি করা হয়েছে। রাস্তাটি আগেও একাই জায়গা বার বার নষ্ট হয়ে যেতো এবং সংষ্কারের নামে লক্ষ লক্ষ টাকা নষ্ট করা হয়েছে ।  এই খানে  বহু দূর্ঘটনা ঘটেছে। এক পাশে রাস্তা ভাঙ্গাচুরা আর অন্য পাশে রাস্তার উপর মাহিন্দ্র, ইজিবাইকে থামিয়ে রেখে যাত্রী উঠান নামানো করার জন্য ঘন্টার পর ঘন্টা রাস্তার উপর দাড়িয়ে থাকে। এতে করে রাস্তার দুই পাশে প্রতিনিয়ত যান জটের সৃষ্টি হয়। এমত অবস্থায় শৈলকুপা উপজেলা প্রশাসনের তেমন কোন উদ্যোগ চোখে পড়েনা। তবে এলাকা বাসি ও পরিবহন শ্রমিক রা প্রতিবেদক জানান যে, রাস্তাটি অতিদ্রুত সংষ্কার করার জন্য ঝিনাইদহ সড়ক বিভাগের কাছে অনুরোধ করেছে।

ঝিনাইদহে আদর্শপাড়ার তিন টি এলাকা লকডাউন

ঝিনাইদহে আদর্শপাড়ার তিন টি এলাকা লকডাউন






খোন্দকার আব্দুল্লাহ বাশার। 
( ঝিনাইদহ জেলা প্রতিনিধি) 



করোনায় সংক্রমন বৃদ্ধি পাওয়ায় ঝিনাইদহ শহরে এলাকা ভিত্তিক লকডাউন শুরু করেছে প্রশাসন। সোমবার দুপুরে শহরের আদর্শপাড়ার ৩ টি এলাকা প্রশাসনের পক্ষ থেকে লকডাউন করা হয়। ওই ৩ টি এলাকার মোড়ের রাস্তা বন্ধ করা হয়েছে। আগামী ৭ দিন প্রাথমিকভাবে এলাকা লকডাউন থাকবে। এসময় ওই এলাকা থেকে কেউ বেরুতে বা প্রবেশ করতে পারবেন না বলে জানিয়েছে জেলা প্রশাসন। লকডাউনকৃত এলাকায় পৌরসভার স্বেচ্ছাসেবক দল কাজ করবে। আগামীতে শহরের অন্যান্য এলাকা ও কালীগঞ্জ উপজেলার কয়েকটি এলাকা পর্যায়ক্রমে লকডাউন করা হবে।
এসময় জেলা প্রশাসক সরোজ কুমার নাথ, পৌর মেয়র সাইদুল করিম মিন্টু, সহকারি পুলিশ সুপার আবুল বাসার, সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকতা মিজানুর রহমান, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বদরুদ্দোজা শুভ, জেলা আওয়ামীলীগের প্রচার সম্পাদক তুষারসহ স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

নওগাঁয় এমপির রোগমুক্তির কামনায় কোরআনখানি ও মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত

নওগাঁয় এমপির রোগমুক্তির কামনায় কোরআনখানি ও মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত






 মোঃ ফিরোজ হোসাইন 
 রাজশাহী ব্যুরো

নওগাঁর আত্রাই উপজেলার বান্দাইখাড়া টেকনিক্যাল অ্যান্ড বিএম কলেজ ও প্রজন্ম পরিবারের উদ্যোগে,নওগাঁ-০৬(আত্রাই-রাণীনগর)এর সংসদ সংসদ,মোঃ ইসরাফিল আলম 
মহোদয়ের পরিপূর্ণ সুস্থতা ও দীর্ঘায়ু কামনা করে কোরানখানি ও মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে।

মঙ্গলবার (১৪ই জুলাই)দুপুর ১২ টায়  আত্রাই উপজেলার বান্দাইখাড়া টেকনিক্যাল এ্যান্ড বিএম কলেজের প্রতিষ্ঠাতা , অধ্যক্ষ ও প্রজন্ম পরিবারের চেয়ারম্যান আব্দুর রহমান রিজভী এর সভাপতিত্বে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।  

বান্দাইখাড়া টেকনিক্যাল কলেজ মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত মিলাদ মাহফিল পরিচালনা করেন হাফেজ মোঃ ফিরোজ হোসাইন কোরআন শরিফ পাঠ করেন  মাওলানা মোঃ আবু বক্কর সিদ্দিক এর আগে পবিত্র কোরআন খতম করেন হাফেজ আব্দুল্লাহ আলমাস বিন রহমান তানভীর।

কোরআনখানি ও মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠানে  উপস্থিত ছিলেন, আত্রাই উপজেলা চেয়ারম্যান মোঃ এবাদুর রহমান, উপজেলা আওয়ামী লীগ  সাধারণ সম্পাদক চৌধরী গোলাম মোস্তফা বাদল, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ও উপজেলা যুবলীগের সভাপতি শেখ হাফিজুল ইসলাম,সাধারন সম্পাদক (ভারপ্রাপ্ত)রাফিউল ইসলাম রাফি,মোঃ মাহবুবুল হক দুলু অধ্যক্ষ (ভারপ্রাপ্ত)মোল্লা আজাদ মেমোরিয়াল সরকারি  কলেজ,ইসরাফিল আলম পলিটেকনিক্যাল এর ভাইস প্রিন্সিপাল মাসুদ পারভেজ ,উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আবু হেনা মোস্তফা কামাল,নওগাঁ জেলা প্রেসক্লাব সাধারণ  মো.আবু বকর সিদ্দিক, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মাহদী মাসনদ স্বরুপ,সাধারণ সম্পাদক,হুমায়ুন কবির সোহাগ, আওয়ামী লীগের হাটকালুপাড়া ইউনিয়ন সভাপতি মো.আমজাদ হোসেন,সাধারণ সম্পাদক মো.আফজাল হোসেন,সাহাগোলা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোফাজ্জল হোসেন সন্দেশ,  আত্রাই প্রেসক্লাব সাধারণ সম্পাদক, নাজমুল হোসেন সেন্টু, সাংবাদিক ছাবেদ আলী,ফিরোজ হুসাইন,আল আমিন মিলন,এমরান মাহমুদ প্রত্যয়, এম এ হেলাল 
 সহ আওয়ামী লীগে ও কলেজের অঙ্গ সংগঠনে সদস্য বৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

চৌগাছায় ছাত্রলীগের মাস্ক বিতরণ

চৌগাছায় ছাত্রলীগের মাস্ক বিতরণ





চৌগাছা উপজেলা প্রতিনিধিঃ
যশোর এর চৌগাছায় ছাত্রলীগের উদ্যোগে মাস্ক বিতরণ করা হয়েছে। চৌগাছা ইউনিয়ন ছাত্রলীগের আহবায়ক আকরামুল ইসলাম এর সৌজন্যে ৩৫০ পিছ মাস্ক চৌগাছা ইউনিয়ন ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে  বিভিন্ন পাড়া মহল্লা এবং চায়ের দোকানে বিতরণ করা হয়। মাস্ক বিতরণ এর সময় উপস্থিত ছিলেন চৌগাছা সদর ইউনিয়ন এর চেয়ারম্যান ও উপজেলা যুবলীগের সাবেক সভাপতি মোঃ রফিকুল ইসলাম। তিনি বলেন, ছাত্রলীগ সব সময় মানুষের জন্য কাজ করে আর চৌগাছা ইউনিয়ন ছাত্রলীগ ভালো কাজের রোল মডেল। ছাত্রলীগের আহবায়ক আকরামুল ইসলাম এর নেতৃত্বে ইউনিয়ন ছাত্রলীগ অন্যান্য উচ্চাতায় পৌছেছে, ভাল কাজের জন্য ছাত্রলীগ পরিবার কে আমি ধন্যবাদ জানায়।  

আকরামুল ইসলাম এই প্রতিবেদককে বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর হাতে গড়া  ছাত্র ও রাজনৈতিক সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ প্রতিষ্ঠার পর থেকে আজ অবধি সকল  আন্দোলন, সংগ্রামে যেমন নেতৃত্ব দিয়েছে তেমনি ভাবে মানবিক বিপর্যয়ে উদ্ধার কর্তার ভূমিকায় অবতীর্ণ হয়েছে।
 সারা পৃথিবীতে যখন করোনা ভাইরাস মহামারী আকারে ছড়িয়ে পড়ে তখন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে আমরা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা ব্যক্তিগত ভাবে করোনা প্রতিরোধে জনসচেতনতা সৃষ্টি, মাস্ক, সাবান, হ্যান্ডস্যানিটাইজার বিতরণ করেন, কৃষক সংকটে থাকা অসহায় কৃষক ধান কেটে দেওয়া,খাদ্য সামগ্রী বিতরণ, শিশুখাদ্য বিতরন করেছি, ঈদে অসহায় পরিবারের মধ্যে ঈদ সামগ্রী বিতরণ করেছি এবং ছাত্রলীগের সকল সামর্থ্যবান নেতা কর্মীরা মানুষের সাহায্য করেছেন।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন চৌগাছা ইউনিয়ন  ছাত্রলীগের আহবায়ক আকরামুল ইসলাম, যুগ্ম আহবায়ক জিহাদ হোসেন এবং শাহাবুদ্দীন আহমদ, ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সদস্য সাগর কুমার, ৪ নং ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সভাপতি শাকিল হোসেন, সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাসান সজিব, ৬ নং ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সভাপতি আশানুর ইসলাম, ইউনিয়ন ছাত্রলীগ নেতা রায়হান সহ ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ ও ছাত্রলীগের বিভিন্ন স্তরের নেতৃবৃন্দ।

আশাশুনি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে বৃক্ষরোপণ করেন ডাঃ সুদেষ্ণা সরকার

আশাশুনি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে বৃক্ষরোপণ করেন ডাঃ সুদেষ্ণা সরকার





আহসান উল্লাহ  বাবলু, আশাশুনি (সাতক্ষীরা) প্রতিনিধিঃ

আশাশুনি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে বিভিন্ন প্রজাতির বৃক্ষরোপণ করেন উপজেলা স্বাস্থ্য ও পঃ পঃ কর্মকর্তা ডাঃ সুদেষ্ণা সরকার। মঙ্গলবার সকালে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স চত্বরে এ বৃক্ষরোপণ  করা হয়। বৃক্ষরোপণ কালে ডাঃ সুদেষ্ণা সরকার বলেন স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের শোভা বর্ধন ও সৌন্দর্য বৃদ্ধির লক্ষ্যে আমি নিজ উদ্যোগে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের অর্থায়নে এ কাজ করেছি। স্বাস্থ্য সেবার পাশাপাশি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সকে একটি অপার সৌন্দর্যে রূপ দেয়াই আমার একমাত্র লক্ষ্য। আগামীতেও স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এধরনের উন্নয়নমূলক কাজ অব্যাহত থাকবে। এসময় উপস্থিত ছিলেন মেডিকেল অফিসার ডাঃ দীপন কুমার বিশ্বাস,ডাঃ বুশরা, স্বাস্থ্য সহকারী মোক্তারুজ্জামান স্বপন প্রমুখ।

আজ করোনায় দেশে মৃত্যু -৩৩

আজ করোনায় দেশে মৃত্যু -৩৩





নিউজ ডেস্কঃ   
• ২৪ ঘন্টায় করোনা শনাক্ত- ৩১৬৩।
• ২৪ ঘন্টায় করোনায় মৃত্যু- ৩৩।
• ২৪ ঘন্টায় সুস্থ হয়েছেন- ৪৯১০।
• ২৪ ঘন্টায় শনাক্তের হার- ২৩.৫১%।
• ২৪ ঘন্টায় নমুনা পরীক্ষা- ১৩৪৫৩।
• ২৪ ঘন্টায় নমুনা সংগ্রহ- ১৩৯৮৮।
• দেশে করোনা মোট শনাক্ত- ১৯০০৫৭।
• দেশে করোনায় মোট প্রাণহানি- ২৪২৪।
• দেশে মোট সুস্থ হয়েছেন- ১০৩২২৭

চুয়াডাঙ্গার জীবননগরে ট্রেনে কাটা পড়ে অজ্ঞাত যুবকের মৃত্যু

চুয়াডাঙ্গার জীবননগরে ট্রেনে কাটা পড়ে অজ্ঞাত যুবকের মৃত্যু





মোঃকাউসার আলী
চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি

চুয়াডাঙ্গা জেলার জীবননগর উপজেলার আনসার বাড়িয়া রেল স্টেশনের অদূরে ট্রেনে কাটা পড়ে অজ্ঞাত যুবকের মৃত্যু হয়েছে।
আজ ১৪ জুলাই মঙ্গলবার সকাল ৬ টার দিকে আনসার বাড়িয়া রেল স্টেশনের নিকট বেলতলা নামক স্থানে এ দূর্ঘটনা ঘটে।পরবর্তীতে জীবননগর থানা পুলিশ লাশ উদ্ধার করে নিয়ে যায়।সকাল ১০ টা পর্যন্ত অজ্ঞাত মৃত যুবকের পরিচয় পাওয়া যায়নি।

দিনাজপুর শহর রক্ষা বাধ সংলগ্ন নিমাঞ্চল ও বিরল অংশের কয়েকটি গ্রামের কয়েক হাজার মানুষ পানিবন্ধী হয়ে পড়েছে

দিনাজপুর শহর রক্ষা বাধ সংলগ্ন নিমাঞ্চল ও বিরল অংশের কয়েকটি গ্রামের কয়েক হাজার মানুষ পানিবন্ধী হয়ে পড়েছে




মামুনুর রশিদ,দিনাজপুর প্রতিনিধি : উজানের নদ-নদীর বয়ে আসা পানির কারণে দিনাজপুরে জেলার ৩টি নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়েছে ফলে নদী তীরবর্তী নিমাঞ্চলের বসতবাড়ি প্লাবিত হয়েছে।  ইতোমধ্যে আত্রাই নদীর পানি বিপৎসীমার কাছাকাছি অবস্থান করছে। 
আজ সোমবার সকাল থেকেই জেলা সদর ও বিরল উপজেলার মধ্যদিয়ে প্রবাহিত পূর্ণভবা নদীর শহর রক্ষা বাধ সংলগ্ন নিমাঞ্চলগুলো ও বিরল অংশের কয়েকটি গ্রামের কয়েক হাজার মানুষ পানিবন্ধী হয়ে পড়েছে। এভাবে পানি বাড়তে থাকলে দিনের মধ্যেই পানি বিপদ সীমা অতিক্রম করতে পারে বলে আশংকা করছেন পানি উন্নয়ন বোর্ড সংশ্লীষ্ট কর্মকর্তারা। 
দিনাজপুর পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপ-সহকারী প্রকৌশলী ইলিয়াস হোসেন জানান, জেলার প্রধান তিনটি নদীর পানি বিপৎসীমার কাছাকাছি অবস্থান করছে। যদি উজানের পানি এবং বৃষ্টির পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকে তাহলে আজকের মধ্যেই (১৪ জুলাই) বিপৎসীমা অতিক্রম করবে। 
তিনি আরো জানান, দিনাজপুর শহরের পাশ দিয়ে প্রবাহিত পুর্ণভবা নদীর পানি ৩৩ দশমিক ৫০ মিটার বিপদ সীমার বিপরীতে বর্তমানে পানির স্তর রয়েছে ৩২ দশমিক ৬০ মিটার, আত্রাই নদীর পানি ৩৯ দশমিক ৬০ মিটারের বিপরীতে বর্তমানে ৩৯ দশমিক ৯৬ মিটার ও ইছামতি নদীর পানি ২৯ দশমিক ৯৫ মিটারের বিপরীতে ২৮ দশমিক ৯৮ মিটারে অবস্থান করছে। এছাড়াও জেলার অন্যান্য ছোট নদীর পানিও বৃদ্ধি পেয়েছে।

সাধারণ সদস্য উম্মুক্তের জোর দাবী জেলা বাসীর দিনাজপুর চক্ষু হাসপাতালে অজ্ঞাত কারণে সাধারণ সদস্যপদ স্থগিত

সাধারণ সদস্য উম্মুক্তের জোর দাবী জেলা বাসীর দিনাজপুর চক্ষু হাসপাতালে অজ্ঞাত কারণে সাধারণ সদস্যপদ স্থগিত




দিনাজপুর প্রতিনিধিঃ 
দীর্ঘ ১০ বৎসর যাবৎ দিনাজপুর বিএনএসবি চক্ষু হাসপাতালে রহস্যজনক কারণে সদস্য পদ অন্তর্ভুক্তি করা হচ্ছে না। প্রতি বছর মে মাসে কমিটির বার্ষিক সাধারণ সভায় সদস্য অন্তর্ভুক্তির আলোচনা হলেও অজ্ঞাত কারণে বন্ধ রয়েছে। জেলা প্রশাসক সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক ডাঃ চৌধুরী মোসাদ্দেকুল ইজদানীসহ ১৩ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি রয়েছে। প্রতি বৎসর বার্ষিক সাধারণ সভায় কমিটিতে সাধারণ সদস্য অন্তর্ভুক্তির ব্যাপারে 
আশ্বাস প্রদান করা হলেও তা কার্যকরী করা হয় না। যার কারণে দীর্ঘ ১০ বৎসর ধরে কমিটিতে নতুন সদস্য পদ অন্তর্ভূক্ত হয়নি। নতুন সদস্য পদ কেন নেয়া হচ্ছে না এ ব্যাপারে কমিটির অনেকের সাথে আলাপকালে তারা জানান, দীর্ঘদিন ধরে কার্যকরী কমিটির বার্ষিক সাধারণ সভায় আলোচনা হলেও যৌক্তিক কারণ ছাড়াই সাধারণ সদস্য নেয়া হচ্ছে না। প্রতি বৎসরের ন্যায় এবারও ৩০ মে বার্ষিক সাধারণ সভায় নতুন সদস্য     অন্তর্ভুক্তির ব্যাপারে আলোচনা হয়। বার্ষিক আলোচনায় সভায় বাংলাদেশ জাতীয় অন্ধ কল্যাণ সমিতি দিনাজপুর এর সভাপতি সুযোগ্য জেলা প্রশাসক মাহমুদুল আলম বলেন, নতুন সদস্য অন্তর্ভুক্তি বিষয়ে জোর দাবী উঠলে তিনি বাস্তবায়ন করবেন বলে সকলকে আশ্বস্ত করেন। তিনি আরও বলেন, কেন ১০ বৎসর যাবৎ নতুন সদস্য অন্তর্ভুক্তি করা হচ্ছে তা খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন। দীর্ঘদিন ধরে নতুন সদস্য অন্তর্ভুক্তি না হওয়ায় গাওসুল আজম বিএনএসবি চক্ষু হাসপাতালটি আধুনিকায়নে বাধাগ্রস্ত হচ্ছে। অপরদিকে কমিটির সাধারণ সম্পাদক পদ এক শ্রেণির পেশাজীবির কাছে কুক্ষিগত হয়ে থাকার কারণে কমিটির সদস্যরা একই মুখ বার বার দেখছে। দিনাজপুরবাসীর দাবী কমিটিতে নতুন সদস্য অন্তর্ভুক্ত করা হোক তাহলে বিএনএসবি চক্ষু হাসপাতালটি আধুনিকায়নে আলোর মুখ দেখবে। জানা গেছে, ১৩ সদস্য বিশিষ্ট কমিটিতে রয়েছেন মাত্র ২শত ২৯ জন আজীবন সদস্য এবং ২শত ৬ জন সাধারণ সদস্য ১০ বৎসর ধরে এই অবস্থা বিরাজ করছে দেখার থাকলেও এ ব্যাপারে মাথা ঘামাতে দেখা যাচ্ছে না। কমিটিতে সাধারণ সদস্য উন্মুক্ত করার জোর দাবী জানিয়েছেন জেলার সচেতন মহল।

বিএমএসএফ'র জন্মদিনের শুভেচছা

বিএমএসএফ'র জন্মদিনের শুভেচছা




পীযুষ সরকার, ভ্রাম্যমান প্রতিনিধিঃ 
নানা ঘাত প্রতিঘাত পেরিয়ে বিএমএসএফ ১৫ জুলাই ৮ পেরিয়ে নয় বছরে পদার্পণ করেছে। পথচলার এই শুভক্ষণে বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরামের পক্ষ থেকে দেশবাসী, প্রিয় সহযোদ্ধা সাংবাদিক বন্ধুদের প্রতি অকৃত্রিম ভালোবাসা ও কৃতজ্ঞতা জানাই।  যারা বিভিন্নভাবে সহযোগিতা করেছে তাদের প্রতি রইল হৃদয় নিংড়ানো ভালোবাসা।

প্রিয় সাংবাদিক সহযোদ্ধা বন্ধুগণ। আপনারা বিএমএসএফ এর ১৪ দফা দাবির প্রতি বিশ্বাস রাখুন।  সাংবাদিক নির্যাতনের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে ঐক্যবদ্ধ থাকুন। এই ১৪ দফা দাবি একজন সাংবাদিকের পেটের ক্ষুধা কর্মক্ষেত্রের নিরাপত্তা ও নিশ্চয়তা রক্ষাকবচ।

বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরামের পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে সংগঠনের কেন্দ্রীয় সভাপতি আলহাজ্ব শহীদুল  ইসলাম পাইলট এবং প্রতিষ্ঠাতা ও সাধারণ সম্পাদক আহমেদ আবু জাফর দেশের সকল সাংবাদিকদের এই ক্রান্তিকালে ঐক্যবদ্ধ হতে আহ্বান জানিয়েছেন।

 বিএমএসএফ এর নেতৃবৃন্দ বলেন, সাংবাদিকদের দাবি এবং অধিকার আদায়ে ১৪ দফা দাবির কোন বিকল্প নেই। এই ১৪ দফা দাবিই হতে পারে সাংবাদিকদের আগামী দিনের একমাত্র অবলম্বন। 

এবছর মহামারী করোনার কারনে বিএমএসএফ এর প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীরর সকল আনুষ্ঠানিকতা স্থগিত রাখা হয়েছে। বিএমএসএফ এর বিগত ৮বছরের এই পথ চলায় সারা বাংলাদেশের ১৫  হাজার সংবাদকর্মী, তিন শতাধিক জেলা-উপজেলা় শাখা এবং পাঁচটি বৈদেশিক শাখার মাধ্যমে বিএমএসএফ পরিচালিত হচ্ছে।

২০১৩ সালের  সালের ১৫ জুলাই সারাদেশের সাংবাদিকদের অংশগ্রহণে বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম প্রতিষ্ঠা হয়েছিল। ধীরে ধীরে সংগঠনটি আজ হাজার হাজার সাংবাদিকদের প্রাণের সংগঠনের রূপ নিয়েছে। বিএমএসএফ আজ সাংবাদিকদের আস্থার প্রতীক। নির্যাতিত সাংবাদিকদের ভরসাস্থল। যেখানে নির্যাতন সেখানেই বিএমএসএফ।

ইতিমধ্যে বিএমএসএফ এর চৌদ্দ দফার প্রতি সমর্থন জানিয়েছেন জাতীয় প্রেসক্লাব নেতৃবৃন্দ, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়ন নেতৃবৃন্দসহ বিভিন্ন সংগঠন। এছাড়া দেশের বিভিন্ন প্রেসক্লাব, রিপোর্টার্স ইউনিটি এবং বিভিন্ন সংগঠন এই চৌদ্দ দফা কে সমর্থন করে। বিএমএসএফ প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে সাংবাদিকদের তালিকা প্রণয়নের দাবি করে আসছে। 

এরই ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশ প্রেস কাউন্সিল সাংবাদিকদের তালিকা প্রণয়নের কাজ হাতে নিয়েছে। দাবি করা হচ্ছে সাংবাদিক নিয়োগ নীতিমালা প্রণয়নের। এই নিয়োগ নীতিমালা প্রণীত হলে হলুদ কিংবা অপসাংবাদিকতা মুক্ত বাংলাদেশ গড়ে উঠবে। বাংলাদেশ প্রেস কাউন্সিল সংস্কার বিএমএসএফ এর অন্যতম একটি দাবি। 

এবছর বিএমএসএফ'র সকল শাখাকে শুধু গাছ লাগাতে সকল শাখাসমুহের নেতৃবৃন্দকে আহবান জানানো হয়েছে। 

আসুন, আমরা বিএমএসএফ এর পতাকাতলে ঐক্যবদ্ধ হই়। ঘুনে ধরা এই গণমাধ্যম অঙ্গনকে ঢেলে সাজাই। বিএমএসএফ'র সাথেই থাকুন। বিজয় আমাদের হবেই হবে। যদি লক্ষ্য থাকে অটুট তবে দেখা হবে বিজয়ে...

করোনা পরিস্থিতিতে অর্থ সংকটে ভুগছে ডেকোরেটর ব্যবসায়ীরা

করোনা পরিস্থিতিতে অর্থ সংকটে ভুগছে ডেকোরেটর ব্যবসায়ীরা




এম এ অয়ন মাগুরা প্রতিনিধি:

করোনা পরিস্থিতির কারণে মাগুরায় সাড়ে তিন মাস বন্ধ রয়েছে সব সরকারি, সামাজিক ও ধর্মীয় অনুষ্ঠান। এতে মহা বিপাকে পড়েছেন মাগুরার মাইক   ডেকোরেটর ব্যবসায়ীরা। একদিকে বন্ধ হয়েছে আয়, অন্যদিকে ফুরিয়ে এসেছে জমানো টাকা। ফলে মানবেতর জীবনযাপন করছেন তারা।

সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায়, অধিকাংশ দোকান খোলা থাকলেও নেই কাজের ব্যস্ততা। সকালে বাসা থেকে এসে দোকান খুলে বসে থেকে আবার সন্ধ্যায় বাসায় ফিরে যাচ্ছেন ব্যবসায়ীরা। দিন শেষে হিসাবের খাতা শূন্য। 

শহরের প্রায় একশ’র বেশি ছোট বড় মাইক ও ডেকোরেটর ব্যবসায়ী রয়েছেন। দীর্ঘদিন ধরে রোজগার না থাকায় অসহায় অবস্থায় রয়েছেন দিন যাপন করছেন তারা। সরকারিভাবে কয়েকবার ত্রাণ দিলেও তা নামমাত্র।

মাগুরা নতুন বাজার রবি সাউন্ডের মালিক বিপ্লব অধিকারী বলেন, আমাদের মাগুরা জেলায় প্রায় একশ’র বেশি মাইক ব্যবসায়ী রয়েছেন। বিভিন্ন ধর্মীয় অনুষ্ঠান সাংস্কৃতিক ও রাজনৈতিক অনুষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। প্রায় সাড়ে তিন মাসে আমাদের তিনশ টাকাও আয় হয়নি। কর্মচারীদের খরচ দিতে হচ্ছে। জমানো টাকা যা ছিল তাও শেষ হয়ে গেছে। আমরা মানবেতর জীবন যাপন করছি। জেলা প্রশাসকের কার্যালয় থেকে একবার ত্রাণ পেয়েছিলাম।

তরুণ ডেকোরেটরে চাকরি করেন মোহম্মদ কামাল হোসেন (৪০)। পরিবারের সদস্যদের মুখে খাবার তুলে দেওয়ার একমাত্র ভরসা তিনি। কিন্তু গেল তিন মাসে দোকান বন্ধ থাকায় কামালের বেতনও বন্ধ।

জেলা ডেকোরেটর্স ব্যবসায়ী কল্যাণ সমিতির সদস্য তরুণ ভৌমিক বলেন, করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলেও ক্ষতি পুষিয়ে নিতে অনেক সময় লাগবে। অনেকে ব্যবসা বন্ধ করে দেবে। গত কয়েক মাসে বিদ্যুৎ বিল বাকি রয়েছে। কর্মচারী পাওয়া যাবে না। নানা কারণে অনেকে এই ডেকোরেটর শিল্প থেকে হারিয়ে যাবে বলে আশঙ্কা করেন তিনি।

ডেকোরেটর ব্যবসায়ী সমিতির হিসাব অনুয়ায়ী, মাগুরা জেলায় ছোট বড় মিলিয়ে মাইক, ডেকোরেটর ও কমিউনিটি সেন্টার রয়েছে প্রায় তিনশ, আর এর চেয়ে অনেক বেশি মানুষ এই ব্যবসার সঙ্গে জড়িত।
 

 সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবু সুফিয়ান বলেন, পৌরসভা ও ইউনিয়ন পর্যায়ে জেলে, কামার, তাঁতি, ঋষি, মাই ও ডেকোরেটর শিল্পের সঙ্গে জড়িত সব পেশাজীবী মানুষের তালিকা  করে তাদের সহযোগিতা করা হবে।

ঝিকরগাছায় ইমাম মুয়াজ্জিনদের মাঝে চেক বিতরণ

ঝিকরগাছায় ইমাম মুয়াজ্জিনদের মাঝে চেক বিতরণ





মোঃ ইকরামুল করিম সৈকত, 
ঝিকরগাছা (যশোর) প্রতিনিধিঃ

২০১৯-২০ অর্থবছরে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের সহযোগিতায় এবং ইমাম ও মুয়াজ্জিন কল্যাণ ট্রাস্ট হইতে ঝিকরগাছা উপজেলার ১২ জনকে ৫ হাজার টাকা ও ইসলামিক ফাউন্ডেশন থেকে ২ জনকে ৬ হাজার টাকার যাকাত প্রদান করা হয়।

ঝিকরগাছা উপজেলা পরিষদ কার্যালয়ে উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান জনাব সেলিম রেজা ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান জনাব লুবনা তাক্ষী উপস্থিত থেকে যাকাতের অর্থ প্রদান করেন।

এসময় বিভিন্ন মসজিদের ঈমাম মুয়াজ্জিনগণ উপস্থিত ছিলেন।

আশাশুনিতে সিএইচসিপি'র চাকুরী স্থায়ীকরণের দাবিতে মানববন্ধন

আশাশুনিতে সিএইচসিপি'র চাকুরী স্থায়ীকরণের দাবিতে মানববন্ধন


 
আহসান উল্লাহ বাবলু আশাশুনি(  সাতক্ষীরা) প্রতিনিধি  : আশাশুনিতে কমিউনিটি ক্লিনিকে চাকরিরত সিএইচসিপিদের চাকুরী স্থায়ীকরণ ও প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা বাস্তবায়নের দাবিতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। মঙ্গলবার সকাল দশটায় আশাশুনি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সম্মুখে সিএইচসিপি সদস্যদের অংশগ্রহণে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঘোষণা বাস্তবায়নের দাবিতে আয়োজিত মানববন্ধনে বক্তারা ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন,

 বর্তমান করোনাভাইরাস দেশব্যাপী মহামারি আকার ধারণ করায় জীবনের ঝুঁকি নিয়ে আমরা চিকিৎসা সেবার পাশাপাশি সন্দেহভাজন রোগীর নমুনা সংগ্রহে অগ্রণী ভূমিকা পালন করে আসছে এবং এ্যান্সের মাধ্যমে কোন রোগের তথ্য স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে প্রেরণ করে চলেছি। মহামান্য হাইকোর্টে তাদের দাবির পক্ষে রায় ঘোষনা করলেও আজ পর্যন্ত রায়ের বাস্তবায়ন হয় নাই। ২০১৭ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে টানা ৩৯ দিন ঢাকা প্রেসক্লাবের সামনে অবস্থান ধর্মঘট পালনকালে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সংসদ অধিবেশনে ট্রাস্ট বাস্তবায়নের মাধ্যমে চাকরি স্থায়ীকরণসহ যাবতীয় সরকারি সুযোগ-সুবিধা প্রদানের ঘোষণা দিলেও আজ পর্যন্ত সে ঘটনার কোন বাস্তব রূপ তাদের চোখে পড়েনি। ২০১৯ সালে স্বাস্থ্য বিভাগের মহাপরিচালক আবুল কালাম আজাদ এবং ট্রাস্ট বোর্ডের চেয়ারম্যান সৈয়দ মোদাচ্ছের আলী তাদেরকে আশ্বস্ত করলেও তার পরবর্তী কোনো কার্যক্রম আজও পর্যন্ত দেখেনি। বক্তারা মানববন্ধনে তাদের দাবি তুলে ধরতে গিয়ে বলেন, চাকরির শুরু থেকে তাদের ইনক্রিমেন্ট, ১১তম গ্ৰেডে পদোন্নতিসহ প্রবৃদ্ধি ফান্ডের ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানান। সর্বশেষ বক্তারা বলেন, আমাদের দাবি এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ঘোষনা বাস্তবায়নে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন। মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন বজলুর রহমান বাবু, স ম সেলিম রেজা, ডাঃ সাইফুজ্জামান সাগর, সাইদুল বাসার,তরিকুল ইসলাম, রবিউল ইসলা, শেখ আলীমুল রাজীব,আশফুল হোসেন, সেলিনা,তানিয়া ইয়াসমিন, তানিয়া রহমান,অমিত সরকা, বাসুদেব কুমার মন্ডল প্রমুখ। এ সময় উপজেলার সকল সিএইচসিপি সদস্য উপস্থিত ছিলেন।

'অর্থের অভাবে চিকিৎসাহীনতায় ভুগছে রোড এক্সিডেন্টে অসহায় ভ্যানচালক আব্দুল করিম

    'অর্থের অভাবে চিকিৎসাহীনতায় ভুগছে রোড এক্সিডেন্টে অসহায় ভ্যানচালক আব্দুল করিম






চৌগাছা উপজেলা প্রতিনিধিঃ

যশোর জেলার চৌগাছা উপজেলার পাতিবিলা ইউনিয়ন এর ভবানীপুর গ্রামের আব্দুল করিম ভ্যান চালিয়ে পাঁচ সন্তান নিয়ে কোন ভাবে সংসার চাহিদা মিটাতে সংগ্রাম করছিলেন কিন্তু সাত মাসে আগে এক সড়ক দূর্ঘটনায় তার দুই পা এবং মেরুদণ্ড  ভেঙ্গে যায়। প্রাথমিক ভাবে গ্রামের লোকজনের সহায়তায় চিকিৎসা শুরু করা হয়। এক মাস পর আরও দুই টা অপারেশন করার কথা থাকলেও অর্থ সংকটে সম্ভব হয় না। এখন কাটা যায়গা থেকে রক্ত, পুজ বের হচ্ছে। তার দুই পায়ে রড দেওয়া হয়েছে এবং বুকের ছয়টা হাড় ভেঙে গেছে। প্রতিদিন রাতে অসহ্য যন্ত্রনায় ছটফট করে, ঘুমাতে পারেনা। পরিবারে আর কোন উপার্জনক্ষম লোক না থাকায় অন্যান্য মৌলিক চাহিদা পুরন হচ্ছে না। সমাজের বিত্তবান শ্রেণীর কাছে মানবিক সহায়তার আবেদন করেছে পরিবার টি, চিকিৎসা করতে পারলে আবার হয়তো তিনি পরিবারের হাল ধরতে পারবেন।
 মোঃ হাসান আলী তার বড় ভাই রহিমের ছেলে,
সাহায্য পাঠানোর জন্য বিকাশ নম্বর-  01799039670

মহেশপুরে ফেন্সিডিল সহ এক মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার

মহেশপুরে ফেন্সিডিল সহ এক মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার






খোন্দকার আব্দুল্লাহ বাশার, ঝিনাইদহ জেলা প্রতিনিধি


 মহেশপুর থানা পুলিশের একটি  চৌকস দল গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বিশেষ অভিযান পরিচালনাকালে ইং ১৪/০৭/২০২০ তারিখ ০১.৫৫ ঘটিকার সময় মহেশপুর থানাধীন ভৈরবা বাজারস্থ ভৈরবা হইতে মমিনতলা গামী পাকা রাস্তার পার্শ্বে জনৈক বাবুল হোসেন এর বেকারীর সামনে পাকা রাস্তার উপর হইতে ৫১(একান্ন) বোতল ফেন্সিডিল সহ আসামী মোঃ শিমুল হোসেন(২০), পিতা- মৃত- হাবিবুর রহমান, সাং- বাঁশবাড়ীয়া মাথাভাঙ্গাপাড়া, থানা- মহেশপুর, জেলা- ঝিনাইদহকে গ্রেফতার করেন।গ্রেফতার কৃত মাদক ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা দায়েরর প্রস্তুতি চলছিল বলে জানাযায়।

অনুসন্ধানী রিপোর্টঃ কুড়িগ্রাম জেলায়,,উলিপুর উপজেলার ঐতিহ্যবাহী মুন্সিবাড়ী

  অনুসন্ধানী রিপোর্টঃ   কুড়িগ্রাম জেলায়,,উলিপুর উপজেলার ঐতিহ্যবাহী মুন্সিবাড়ী




মোঃইয়ামিন সরকার আকাশ,কুড়িগ্রাম প্রতিনিধিঃ
কুড়িগ্রাম জেলার, উলিপুর উপজেলার ধরনীবাড়ী ইউনিয়নে উলিপুর মুন্সিবাড়ীর অবস্থান। উলিপুর বাজার থেকে মাত্র ২ কিলোমিটার দূরে প্রায় ৩৯ একর জায়গার উপর মুন্সিবাড়ীর বিশাল অট্টালিকাগুলো কালের সাক্ষী হয়ে দাঁড়িয়ে আছে। আঠারো শতকে বিনোদী লালের পালক পুত্র শ্রী ব্রজেন্দ্র লাল মুন্সির তত্ত্বাবধানে চমৎকার স্থাপত্যের এই মুন্সিবাড়ী নির্মিত হয়। মূল ভবনে আছে শয়ন কক্ষ, ডাইনিং হল, রান্নাঘর, অঙ্কন কক্ষ, বিশ্রাম ঘর এবং অতিথিশালা। মূল বাড়ীর পিছনের দিকে শিব মন্দির, উন্মুক্ত দোল মঞ্চ, তুলসি বেদী, নাট মন্দির, দূর্গা মন্দির ও কূপসহ স্নানাগার রয়েছে। এছাড়া মূল ফটকের পাশে আছে কাঁঠালি চাপা ফুলের গাছ এবং শান বাঁধানো পুকুর ঘাট।

ইতিহাস থেকে জানা যায়, কাশিম বাজারের ৭ম জমিদার কৃষ্ণনাথ নন্দীর মৃত্যুর পর তাঁর স্ত্রী মহারানী স্বর্নময়ী দেবীর অধীনে হিসাব রক্ষকের কাজ করতো বিনোদী লাল নামের এক মুনসেফ বা মুন্সি। কথিত আছে, একদিন বিনোদী লাল মুন্সি শিকার করতে গিয়ে একটি ব্যাঙের সাপ ধরে খাওয়ার দৃশ্য দেখতে পান। আগেকার দিনে মানুষেরা বিশ্বাস করতেন যেস্থানে ব্যাঙ সাপকে ধরে খায় সেই স্থানে বাড়ী করলে অনেক ধন সম্পত্তির মালিক হওয়া যায়। তাই বিনোদী লাল মহারানী স্বর্নময়ীর কাছ থেকে অনুমতি নিয়ে এই স্থানে একটি বাড়ী নির্মাণ করেন।

এরপর ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধের সময় মুন্সিলালের বংশধররা কলকাতায় চলে গেলে বেশ কয়েকবার বাড়ীর মালিকানা বদল হয়।

হারিয়ে যাচ্ছে ইতিহাস-ঐতিহ্যের স্বাক্ষী –

বর্তমানে বাড়িটির একটি কক্ষে ভূমি অফিস, আর একটিতে আছে অনেক পুরনো ভূমি সংক্রান্ত মোটা মোটা খাতা, ফাইল যা ভাঙ্গা তাকের উপর এবং একটি ভাঙ্গা টেবিল, ভাঙ্গা আলমারী, শ্রী ব্রজেন্দ্রলাল মুন্সীর ছবি ইত্যাদি শোভা পায়। বাকি কক্ষটি পরিত্যক্ত। সংস্কারের অভাবে একটু বৃষ্টি হলেই পানিতে ভিজে যায় কক্ষের ভিতরের অংশ। যার ফলে নষ্ট হয়ে গেছে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ ফাইল। ছাদের পানি পরার জন্য যে বাঘের মুখ ছিল এক সময়, তা আজ প্রতক্ষদর্শীদের বর্ণনায় পাওয়া যায়। দেওয়ালের কারুকার্যখচিত দেওয়াল আজ সংস্কারের অভাবে চাঁপা পরছে শেওলার নিচে, ভেঙ্গে পড়ছে শেষ চেষ্টায় টিকতে না পেয়ে। মন্দিরটিতে এখন আর বাজে না কাসার ঘন্টা, হয় না পূজা অর্চনা। মন্দিরের পশ্চিমে খোলা মঞ্চ আজ শুধুই কালের স্বাক্ষী, তুলসীর পাঠের অবস্থা করুণ, স্নানাগারের ভিতরের কূপটি মাটি দিয়ে ভরাট হয়েছে। ভিতরে জঙ্গলে ভরা। যাতে শোভা পায় বড় বড় গেছো শামুক।

দরকার উদ্যোগ –
অবহেলা-অযত্নে এবং স্বার্থপরতায় ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে উলিপুর-কুড়িগ্রামের ইতিহাস-ঐতিহ্যের স্বাক্ষী বিখ্যাত মুন্সী বাড়ী। আজ এলাকাবাসীর দাবী, মামলা নিষ্পতি করে সংস্কার করা। অট্রালিকাটিকে ঐতিহাসিক স্থান হিসাবে সংরক্ষণ করে দর্শনীয় স্থান গড়ে তোলার। যুগযুগ বেঁচে থাকুক ইতিহাস ও ঐতিহ্যের স্বাক্ষী জমিদার আমলের ধরণীবাড়ীর স্মৃতি মুন্সীবাড়ী।

কিভাবে যাবেন?
সড়ক পথে ঢাকার আসাদগেট, কল্যাণপুর বা গাবতলি থেকে নাবিল, হক স্পেশাল, হানিফ, তানজিলা এবং এনা পরিবহণের বাসে কুড়িগ্রাম যাওয়া যায়। আবার কমলাপুর রেলওয়ে ষ্টেশন থেকে কুড়িগ্রাম এক্সপ্রেস ট্রেনে সরাসরি কুড়িগ্রাম যেতে পারবেন। কুড়িগ্রাম শহর পৌঁছে লোকাল ইজিবাইক বা সিএনজি নিয়ে উলিপুর উপজেলার ধরণীবাড়ী ইউনিয়নের উলিপুর বাজার হয়ে মুন্সিবাড়ী আসতে পারবেন।

কোথায় থাকবেন?
কুড়িগ্রাম শহরের ঘোষপাড়া ও কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনালের কাছে বিভিন্ন মানের বেশ কয়েকটি আবাসিক হোটেল আছে। আবাসিক হোটেলগুলোর মধ্যে হোটেল অর্নব প্যালেস, হোটেল ডিকে, হোটেল স্মৃতি, হোটেল নিবেদিকা ও হোটেল মেহেদী উল্লেখযোগ্য।

কোথায় খাবেন?
কুড়িগ্রামের শাপলা মোড়ে অবস্থিত.   রুপসী বাংলা হোটেল,, নান্না বিরিয়ানি বা এশিয়া হোটেলের খাবার বেশ ভালো। সিদল ভর্তা ও তিস্তা নদীর বৈরাতী মাছ কুড়িগ্রামের খুবই জনপ্রিয় খাবার।

ঝিনাইদহে আরো ৩৭ জন করোনায় আক্রান্ত

ঝিনাইদহে আরো ৩৭ জন করোনায় আক্রান্ত






সম্রাট হোসেন, শৈলকুপা( ঝিনাইদহ) সংবাদদাতাঃ

১৪_৭_২০২০ইংতারিখ  সকাল ৯:৪০ মিনিটের কোভিড-১৯ এর আপডেট তথ্য :


অফিসিয়াল ভাবে আমাদের কাছে কুষ্টিয়া_ল্যাব থেকে আরো ৯৩টি নমুনার ফলাফল এসেছে। যার ৫৬জন_নেগেটিভ এবং ৩৭জন_নতুন_আক্রান্ত। 

মোট প্রাপ্ত ফলাফলের সংখ্যা২৬৮৮+৯৩=২৭৮১
নেগেটিভ_২২৩৬
আক্রান্ত_৪৫২+৩৭=৪৮৯

মোট_সংগৃহীত_নমুনার_সংখ্যা_৩০৯৮

উপজেলা_ভিত্তিক_আক্রান্তের_মোট_সংখ্যা সদর_১৬৭+২০=১৮৭
শৈলকূপা_৬৭+৩=৭০
হরিনাকুন্ডু_১৯+২=২১
কালীগন্জ_১৪৮+১০=১৫৮
কোটচাদপুর_২৬+২=২৮
মহেশপুর_২৫

আক্রান্তদের_এলাকা_সমুহ

সদর_(২০)-

১. সদর হসপিটাল ঝিনাইদহ
২. চর খাজুরা
৩. কলা বাগান
৪. খাজুরা জোয়াদ্দের পাড়া
৫. অচিন্ত্য নগর
৬. পুলিশ লাইন ঝিনাইদহ
৭. পুলিশ লাইন ঝিনাইদহ
৮. পুলিশ লাইন ঝিনাইদহ
৯. খাজুরা পূর্ব পাড়া
১০.খাজুরা পূর্ব পাড়া
১১.খাজুরা পূর্ব পাড়া
১২.উপশহর পাড়া
১৩.বড় কামারকুন্ডু কালীচরনপুর
১৪.স্টেডিয়াম পাড়া
১৫. রায় ফার্মেসী ডি. সি. বাংলো
১৬. রায় ফার্মেসী ডি. সি. বাংলো
১৭. রায় ফার্মেসী ডি. সি. বাংলো
১৮. আদর্শপাড়া
১৯. কলা বাগান
২০. খালারাইল

কালীগঞ্জ_(১০)-
১.বনানী পাড়া
২.উল্লাহ
৩.আড় পাড়া
৪.বাসুদেবপুর
৫. কলবাজার কোলা
৬.হেলাই
৭.আড় পাড়া
৮.বলিদা পাড়া
৯.মধুগঞ্জ বাজার
১০.বনানী পাড়া

শৈলকূপা_(৩)-
১. দুধসর
২. দুধসর
৩. ভগমান নগর ফুলহরি

হরিনাকুন্ডু_(২)-
১. হিঙের পাড়া দৌউলতপুর
২. বলরামপুর

কোটচাঁদপুর_(২)-
১. পশু হাসপাতাল পাড়া
২. উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স

​মোট_সুস্থতার_সংখ্যা_১৪৭+৫=১৫২

উপজেলা_ভিত্তিক_সুস্থতার_সংখ্যা

সদর_৪১+৫=৪৬
শৈলকূপা_১৬
হরিনাকুন্ডু_৬
কোটচাঁদপুর_১৮
কালীগন্জ_৫৬
মহেশপুর_১০

কোভিড_১৯_হাসপাতালে_ভর্তি_রোগীর_সংখ্যা_২৪

মোট_মৃত্যুর_সংখ্যা_১১
সদর_৩
শৈলকূপা_৪
কালিগন্জ_৪


কয়রায় মরিচা ধরা রডে ভবনের পিলার ঢালাই!নেই কোন কার্যসহকারী

কয়রায় মরিচা ধরা রডে  ভবনের পিলার ঢালাই!নেই কোন কার্যসহকারী





কয়রা (খুলনা) প্রতিনিধি 
প্রায় দুই মাসের মত নোনা পানির নীচে ডুবে থাকায় পিলারের রডের গায়ে মরিচা ধরে গেছে। নোনা পানিতে ডুবে ছিল ঢালাইয়ের জন্য রাখা বালুও। সেই বালু দিয়েই মরিচা ধরা রডে ঢালাই দেওয়া হচ্ছে। সেখানে নেই কোন সংশ্লিষ্ট দপ্তরের কার্যসহকারি। স্থানীয় মানুষ ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের এমন অনৈতিক কাজে বাঁধা দিয়েও নিবৃত করতে পারেননি। সোমবার এভাবে পিলার ঢালাইয়ের কাজ করা হয়েছে খুলনার কয়রা উপজেলার ‘ফায়ার সার্ভিস এন্ড সিভিল ডিফেন্স স্টেশন’ ভবনের নির্মাণ কাজে। এসময় সেখানকার নির্মাণ শ্রমিকরা ওই ভবনের সীমানা প্রাচীরের প্রায় ৩০টি পিলার ও ১২০ ফিটের মত বীম ঢালাইয়ের জন্য কাজ করছিলেন। 
সেখানে কর্মরত শ্রমিকরা জানান, ঠিকাদারের নির্দেশে তারা কাজ করছেন। খুলনা গণপূর্ত বিভাগ-২ কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, কয়রা 
উপজেলায় এক বিঘা জমির উপর ৩ কোটি ৪৮ লাখ ৫৫০ টাকা ব্যয়ে ‘ফায়ার সার্ভিস এন্ড সিভিল ডিফেন্স স্টেশন’ ভবন নির্মাণ কাজ 
চলছে। মেসার্স রাফিদ ট্রেডার্স নামে একটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান দরপত্রের মাধ্যমে কাজটি করার অনুমতি পায়। ২০১৯ সালের জুলাই মাসে কাজটি শুরু হয়ে চলতি বছরের ৩০ জুন শেষ হওয়ার কথা। এখন পর্যন্ত কাজটির ২৫ ভাগ শেষ করতে পারেনি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান। স্থানীয় 
মানুষের অভিযোগ কাজটির শুরুতেই অনিয়ম করে আসছে এ প্রতিষ্ঠানটি। বাঁধা দিয়েও লাভ হয়নি। কাজের ঠিকাদার লাবু শিকদার বলেন, পিলারগুলো করার জন্য প্রাকৃতিক দূর্যোগ আম্পানের আগে রড বাঁধা হয়। আম্পানে বাঁধ ভেঙে এলাকা প্লাবিত হওয়ায় ঢালাইয়ের কাজ সম্পন্ন করা যায়নি। এখন পানি 
কমে যাওয়ায় দায়িত্বসীল কর্মকর্তার অনুমতিতে ওই পিলার ঢালাই দেওয়া হচ্ছে। কোন সমস্যা থাকলে কাজ বন্ধ করে দেওয়ার কথাও বলেন তিনি। 


কাজে অনিয়মের ব্যাপারে খুলনা গণপূর্ত বিভাগের উপসহকারি প্রকৌশলী মশিউর রহমানকে মুঠোফোনে জানানো হলে তিনিও কাজ বন্ধ করে দেওয়ার কথা বলেন। তবে তার কথামত কাজ বন্ধ না হওয়ায় পরে
আবারও তাকে জানানো হলে তিনি বলেন, নির্মিত পিলারগুলো সকলের উপস্থিতিতে ভেঙে ফেলা হবে। কাজের মেয়াদ সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি বলেন, করোনাভাইরাস ও 
প্রাকৃতিক দূর্যোগের কারণে কাজের মেয়াদ বাড়ানো হয়েছে।

কিশোরগঞ্জে ভাঙ্গনের হুমকিতে বীর মুক্তিযোদ্ধা তাজুল ইসলাম সেতু

কিশোরগঞ্জে ভাঙ্গনের হুমকিতে বীর মুক্তিযোদ্ধা তাজুল ইসলাম সেতু





মো: লাতিফুল আজম
কিশোরগঞ্জ  নীলফামারী প্রতিনিধি:


নীলফামারীর কিশোরগঞ্জ উপজেলার নিতাই ইউনিয়নের বেলতলী ঘাটে ১৪০ মিটার দীর্ঘ বীর মুক্তিযোদ্ধা তাজুল ইসলাম সেতুর সংযোগ সড়ক এবং সেতুর মোকার নিচে বড় ধরনের ধস দেখা দিয়েছে। ফলে কোটি কোটি টাকা ব্যায়ে নির্মিত ব্রীজটি ভাঙ্গনের হুমকীর ঝুঁকিতে রয়েছে।

সোমবার (১৩ জুলাই) বিকালে ব্রীজটি পরিদর্শন করেছেন নীলফামারী এলজিইডির নিবার্হী প্রকৌশলী সুজন কুমার, উপজেলা নিবার্হী অফিসার আবুল কালাম আজাদ, উপজেলা প্রকৌশলী মজিদুল হক, নিতাই ইউপি চেয়ারম্যান ফারুকুজ্জ্মান ফারুক।

উপজেলা প্রকৌশল অফিস সুত্রে জানা গেছে, গত ২০১৫-১৬ অর্থবছরে এলজিইডির অথার্য়নে ৯ কোটি ১৩ লাখ ৫২ হাজার ১৩৪ টাকা ব্যায় করে নিতাই ইউনিয়নের চাঁড়ালকাটা নদীর বেলতলি ঘাটের উপর ব্রীজটি নিমার্ণ করা হয়।

নিতাই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ফারুকুজ্জামান ফারুক বলেন, সৈয়দপুর পানি উন্নয়ন বোর্ডের আওতায় চলতি বছর চাঁড়ালকাটা নদীটি খনন করা হয়। নদী খননের ঠিকাদার অপরিকল্পিতভাবে বোমা মেশিন বসিয়ে নদী খনন করে। অপরিকল্পিতভাবে নদী খননের ফলে এবং সরাসরি নদীর স্রোত ব্রীজের গিয়ে ধাক্কা খাওয়ায় ব্রীজটি সংযোগ সড়ক এবং মোকা ধসে গেছে।

মুশরুত পানিয়াল পুকুর বেলতলি গ্রামের বাসিন্দা শরিফুল ইসলাম বলেন, ব্রীজটির সংযোগ সড়ক এবং ব্রীজের ধসে যাওয়া মোকাটি দ্রুত মেরামত না করলে ব্রীজটির বড় ধরনের ক্ষতি হতে পারে। কিন্তু গত কয়েকদিন ধরে নীলফামারী এলজিইডি এবং পানি উন্নয়ন বোর্ড রশি টানাটানি শরু করেছে।

উপজেলা নিবার্হী অফিসার আবুল কালাম আজাদ বলেন, ব্রীজটি মেরামত করা খুবই জরুরী। খুব দু্রত ব্রীজটির সংযোগ সড়কসহ ধসে যাওয়া অংশটি মেরামত করার জন্য পানি উন্নয়ন বোর্ড এবং এলজিইডিকে ব্যবস্থা নেওয়ার অনুরোধ করেছি।

নীলফামারী এলজিউডির নিবার্হী প্রকৌশলী সুজন কুমার বলেন, চাঁড়ালকাঁটা নদীর পুর্ব পশ্চিম পারে বাঁধ না দিলে কোন ভাবেই ব্রীজটি রক্ষা করা সম্ভব নয়। বর্তমানে নদীর স্রোত সরাসরি ব্রীজে এসে ধাক্কা খাওয়ার ফলে এমনটি হয়েছে। আমরা আপাতত ব্রীজটি রক্ষা জন্য পদক্ষেপ নেব।

সৈয়দপুর পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপ বিভাগীয় প্রকৌশলী মোফাখারুল ইসলাম বলেন, নদীর কাজই হচ্ছে ভাঙ্গা আর গরা। আমি নিজেই নদীর খনন কাজ পরিদর্শন করে এলজিউডিকে চিঠি দিয়ে ব্রীজের বিষয়ে ব্যবস্থা নিতে বলেছি।

ভারত থেকে প্রথমবার এলো শুকনো মরিচ

ভারত থেকে প্রথমবার এলো শুকনো মরিচ





তুহিন হোসেন, বেনাপোল প্রতিনিধি:

ইতিহাসে প্রথমবারের মত বাংলাদেশে ট্রেনে শুকনো মরিচ পাঠাল ভারত। ভারতের অন্ধ্র প্রদেশ থেকে ৩৮৪ টন শুকনো মরিচ নিয়ে প্রথম পার্সেল ট্রেনটি আজ ১৩-০৬-২০২০ রোজ  সোমবার বাংলাদেশের বেনাপোলে পৌঁছেছে।


ঢাকায় ভারতীয় হাই কমিশন এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে, ১৬টি উচ্চ ধারণ ক্ষমতাসম্পন্ন পার্সেল ভ্যান সমন্বিত এক বিশেষ ট্রেনে শুকনো মরিচ পাঠায় ভারতীয় রেল কর্তৃপক্ষ। বিশেষ ট্রেনটি ভারতের গুন্টুরের রেড্ডিপালেম থেকে বাংলাদেশের বেনাপোল পর্যন্ত ১৩৭২ কিলোমিটারের বেশি পথ অতিক্রম করে। রেলপথে পরিবহণ ব্যয় সড়ক পরিবহণের তুলনায় সাশ্রয়ী।

২০২০ সালের মার্চ থেকে কোভিড-১৯ সম্পর্কিত বিধিনিষেধের কারণে দুই দেশের মধ্যে পরিবহণ পরিষেবা ব্যাহত হওয়ায় ভারত-বাংলাদেশ দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্যে প্রভাব পড়ে। এ কারণে ভারতীয় হাই কমিশন সরবরাহ শৃঙ্খলার এই বিঘ্ন হ্রাস করতে বাংলাদেশ রেল কর্তৃপক্ষকে ভারত-বাংলাদেশের মধ্যে পার্সেল ট্রেন পরিষেবা সহজতর করার প্রস্তাব দিয়েছিল।


বাংলাদেশ রেল কর্তৃপক্ষ তাতে সম্মতি জানানোর পরে প্রথম পার্সেল ট্রেন সেবার জন্য পণ্য একত্রিত করা হয়। এই পার্সেল ট্রেন পরিষেবা উভয় দেশের মধ্যে বাণিজ্য সম্প্রসারণে ভূমিকা রাখবে বলে আশা করা হচ্ছে।