চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের তত্ত্বাবধানে পতেঙ্গা থানা সী বিচ বৃক্ষ চারা বিতরণ

 চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের তত্ত্বাবধানে  পতেঙ্গা থানা সী বিচ  বৃক্ষ চারা  বিতরণ

 



 মোঃসাদ্দাম হোসেন রনি চট্টগ্রাম প্রতিনিধি :বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার

নির্দেশে,মুজিব বর্ষ  পালনের অংশ হিসেবে সারাদেশে ১কোটি গাছে লাগাবার নির্দেশনা মোতাবেক 

চট্টগ্রাম  মহানগর আওয়ামী লীগের  তত্ত্বাবধানে, ৪১ নম্বর ওয়ার্ড দক্ষিণ পতেঙ্গা সী বিচ 

গাছের চারা বিতরণ,

 

আজ ১৫ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার দক্ষিন পতেঙ্গা ওয়ার্ডের  সী বীচে  চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের উদ্যোগে ৪৩ টি সাংগঠনিক ওয়ার্ড জুড়ে বাস্তবায়িত বৃক্ষ চারা বিতরণ কর্মসূচির সমাপনী  অনুষ্ঠিত হয়েছে। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির  বক্তব্যে সাবেক মেয়র আ জ ম নাছির   তিনি এই নির্দেশনা দেন। 

তিনি বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম শতবার্ষিকী স্মরণে সারাদেশে এক কোটি গাছের চারা রোপণ করার নির্দেশনা দিয়েছেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী। কিন্তু করোনা কাল ও ৩৪ জেলায় বন্যার কারণে আমাদের কর্মসূচি বাস্তবায়নে সাময়িক সমস্যা হয়েছে। তবে সারাদেশে এককোটি নয় এই কর্মসূচির আওতায় আমাদের প্রায় পাঁচ থেকে সাত কোটি  গাছের চারা লাগানোর সক্ষমতা  রয়েছে।  

তিনি আরো বলেন, সমুদ্র, পাহাড় পরিবেষ্টিত এই চট্টগ্রামের মানুষ যেকোন প্রাকৃতিক দুর্যোগের পূর্বাভাস পেলে আতংকে থাকেন। জীবনের ঝুঁকিতে অনিদ্রায় রাত কাটান। প্রাকৃতিক বিপর্যয় থেকে এই চট্টগ্রামকে বাঁচাতে হলে বৃক্ষ রোপনই একমাত্র উপায়। 


অনুষ্ঠানে প্রধান বক্তার বক্তব্যে চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাবেক সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেন, বৃক্ষ চারা রোপণ কর্মসুচির আওতায় এবার নতুন উদ্যোগ বাস্তবায়ন করা হবে। নগরের পাহাড় ধস, সিলট্রেশন রোধ করার জন্য সকল পাহাড়ে বৃক্ষ রোপন করা হবে। প্রতি বর্ষা মৌসুমে এই চট্টগ্রাম মহানগরে পাহাড় ধসে নিরীহ লোকের প্রানহানি ঘটে। আবার ভূমি দস্যুরা পাহাড় দখল করে রাতের আঁধারে মাটি  কেটে পাহাড়গুলো নিশ্চিহ্ন করে ফেলছে। তাই পাহাড় বাঁচাতে হলে বৃক্ষ রোপনের বিকল্প নেই।   মহানগর আওয়ামী লীগের উদ্যোগে এবার পাহাড়গুলোতে গাছ রোপন করা হবে। একই সাথে উপকূলীয় অঞ্চলে ও নদী অববাহিকায় গাছের চারা রোপণ করবে নগর আওয়ামী লীগ। 

তিনি আরো বলেন, কাগজে কলমে কমিটিতে অনেকেই পদে আছেন। কিন্তু সাংগঠনিক কোন কর্মকান্ডে তাদের দেখা যাচ্ছে না।  বাহ্য দৃষ্টিতে দলের সাংগঠনিক শক্তি দৃশ্যমান হলেও বাস্তবতা ভিন্ন। ৪৩ ওয়ার্ড ও ১২৯ টি ইউনিট কমিটি রয়েছে। একেকটা কমিটির বয়স ১৫-৩০ বছর পর্যন্ত হয়েছে। নেতাদের অনেকেই পদে থেকে মৃত্যু বরণ করেছেন। আবার বয়সের ভারে অনেকেই বর্তমানে নিস্ক্রিয়। এতে করে প্রত্যেকটি কমিটির অনেক পদে শূন্যতা সৃষ্টি হয়েছে। কেন্দ্রের নির্দেশনা মোতাবেক ইউনিট,ওয়ার্ড এবং থানা কমিটিগুলোতে  শূণ্যপদ পূরণের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। সাংগঠনিক রীতি অনুযায়ী  চেইন অব কমান্ডের ভিত্তিতে  শূণ্য পদে নতুন নেতৃত্ব নির্বাচন করা হবে। এ ব্যাপারে আগামীকাল ১৬ সেপ্টেম্বর অনুষ্ঠিত বর্ধিত সভায় চুড়ান্ত সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হবে। 


 উপস্থিত ছিলেন 

দক্ষিণ পতেঙ্গা ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সভাপতি সালেহ  আহমদ চৌধুরী সভাপতিত্ব  ও  সাধারণ সম্পাদক নুরুল আলমের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সভায় বক্তব্য রাখেন নগর আওয়ামীলীগ ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাহতাব উদ্দিন চৌধুরী, সহসভাপতি চসিক প্রশাসক খোরশেদ আলম সুজন, যুগ্ম সম্পাদক মেয়র প্রার্থী রেজাউল করিম চৌধুরী, এম এ রশিদ,  উপদেষ্টা শফর আলী , সাংগঠনিক সম্পাদক নোমান আল মাহমুদ, চৌধুরী হাসান মাহমুদ হাসনী, বন ও পরিবেশ সম্পাদক মসিউর রহমান চৌধুরী, যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক দিদারুল আলম চৌধুরী,তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক চন্দন ধর , আইন সম্পাদক এড শেখ ইফতেখার সাইমুল চৌধুরীসহ মহানগর

যুবলীগ নেতা ওয়াহেদ চৌধুরী ছাত্রলীগ সভাপতি আহসান হাবিব সেতু  ,আরো সম্মানিত ব্যক্তি উপস্থিত ছিলেন  ৩৯ নং  ও  ৪০ নং ৪১ নং ওয়ার্ডের আওয়ামী লীগ যুবলীগ ছাত্রলীগ মহিলা যুব লীগ কৃষকলীগের   নেতৃবৃন্দ সদস্যবৃন্দ  বক্তব্য রাখেন

করোনায় মারা গেলেম পটিয়ার সৌদি প্রবাসী ওমর ফারুক

 করোনায় মারা গেলেম পটিয়ার সৌদি প্রবাসী ওমর ফারুক




 সেলিম চৌধুরী স্টাফ রিপোর্টারঃ- করোনায় আক্রান্ত হয়ে সৌদি আরবে মারা গেলেন চট্টগ্রামের পটিয়া উপজেলার কাশিয়াইশ ইউনিয়নের ভান্ডারগাঁও এলাকার বাসিন্দা   ওমর ফারুক (৪০) নামের এক ব্যক্তি।১৫ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার  সৌদি আরবের জেদ্দার একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। ওমর ফারুক ভান্ডারগাঁও গ্রামের মৃত ইছহাকের পুএ। সে  ২ সন্তানের জনক।বিষয়টি চ নিশ্চিত করেছেন তার প্রবাসী  বন্ধু হাজী দিদারুল আলম। মদিনার হাজ্বী দিদারুল জানান,গত ২৮ আগস্ট করোনা উপসর্গ নিয়ে সৌদিআরবের জেদ্দার একটি হাসপাতালে ভর্তি হন আমার বন্ধু  ওমর ফারুক। সেখানে ১৮ দিন ধরে ফারুকের   চিকিৎসা চলছিল। ১৫ সেপ্টেম্বর  মঙ্গলবার বাংলাদেশ সময় দুপুর একটার দিকে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। পটিয়ার কাশিয়াইশ ইউনিয়নের ভান্ডারগাঁও গ্রামের মোঃ ইছাক এর পুএ     ওমর ফারুক ১৫ বছর ধরে প্রবাসে রয়েছেন। তিনি সৌদি আরবের জেদ্দা নগরে নিজের ব্যবসা পরিচালনা করতেন। সৌদি সরকারের নিয়ম অনুযায়ী নিহতের লাশ সেখানেই দাফন করা হবে বলে জানা গেছে তার বন্ধু দিদারুল আলম(মদিনা)।  



গরীবে নেওয়াজ এর ডায়েরি, সিলেবাস ও ব্যাচের টাকা এতবছর ধরে কোথায় যেত?

গরীবে নেওয়াজ এর ডায়েরি, সিলেবাস ও ব্যাচের টাকা এতবছর ধরে কোথায় যেত?





নিউজ ডেস্কঃ চট্টগ্রাম মহানগরীর হালিশহরে অবস্থিত গরীবে নেওয়াজ উচ্চ বিদ্যালয়ে নানা অভিযোগ ও পাল্টা অভিযোগ চলে আসছে কয়েকমাস ধরে। এবার সামনে এসেছে ডায়েরি, সিলেবাস ও ব্যাচের টাকা তসরুপ নিয়ে অভিযোগ। 


বর্তমানে প্রায় ৩ হাজার শিক্ষার্থীদের পাঠদান করে যাচ্ছে গরীবে নেওয়াজ উচ্চ বিদ্যালয়। তারই ধারাবাহিকতায় প্রতিবছর এরই সমপরিমাণ ডায়েরি, সিলেবাস ও ব্যাচ বিক্রি করা হয়। 

২০১৬,১৭ ও ১৮ সালে ওডিট রিপোর্ট অনুযায়ী ডায়েরি,সিলেবাস ও ব্যাচ এর জন্য প্রতি শিক্ষার্থী থেকে ১৭০ টাকা করে নেয়া হয়। কিন্তু এ বিশাল পরিমাণ অর্থ স্কুলের ফান্ডে জমা করা হয়নি। খবর পাওয়া গেছে, ২০১২ সাল থেকেই এ টাকাগুলো স্কুল ফান্ডে জমা না হয়ে শিক্ষকদের কল্যান ফান্ডে জমা হত। কিন্তু বর্তমানে স্কুলের ম্যানেজিং কমিটি ২০১৯ ও ২০ সালে এগুলোর মান একই রেখে শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে ১২০ টাকা করে নিচ্ছে এবং টাকাগুলো স্কুল ফান্ডে জমা হচ্ছে। 


এবিষয়ে বিদ্যালয়ের পরিচালনা পরিষদের কাছে জানতে চাওয়া হলে তারা বলেন, বিষয়টি খতিয়ে দেখার জন্য প্রধান শিক্ষক কে নোটিশ করা হয়েছিল। কিন্তু সে নোটিশ সময় মোতাবেক আমাদের সামনে হাজির হন নি। তাই আমরা এবার পরবর্তী করনীয় পালন করব।


একইবিষয় নিয়ে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রফিকুল ইসলাম এর সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলেও তা সম্ভব হয়নি।


একেকটা অভিযোগ সামনে আসার পর বেড়েই চলেছে অভিভাবকদের ক্ষোভ। নতুন করে যুক্ত হয়েছে, এটা। 


সাধারণ শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের এখন এটাই প্রশ্ন, প্রধান শিক্ষক কি পারবেন এ প্রশ্নের জবাব দিতে?

সিরাজগঞ্জ কাজিপুরে ৩ গরু চোর আটক

 সিরাজগঞ্জ কাজিপুরে ৩ গরু চোর আটক




মাসুদ রানা সিরাজগঞ্জ জেলা প্রতিনিধিঃসিরাজগঞ্জের কাজিপুর উপজেলার গান্ধাইল ইউনিয়নের পশ্চিম দুবলাই গ্রামে তিন গরুচোরকে আটক করেছে গ্রামবাসী। স্থানীয় গ্রামবাসী ও থানাসূত্রে জানা গেছে, আজ মঙ্গলবার (১৫ সেপ্টম্বর) রাত্রী সারে ৩টায় চোরের দল উপজেলার পশ্চিম দুবলাই গ্রামের মৃত- আব্দুর রহমানের পুত্র আব্দুল হাইয়ের গোয়াল ঢোকে।

একপর্যায়ে তারা গরু বের করে পূর্বে থেকে প্রস্তুত রাখা মিনি পিকআপে উঠানোর চেষ্টা করে। এসময় গ্রামের লোকজন ও গরুর মালিক টের পেয়ে চোরদের ধাওয়া দিয়ে ধরে ফেলে। খবর পেয়ে কাজিপুর থানা পুলিশ আটককৃদের থানায় নিয়ে আসে।

আটককৃতরা হলো- উপজেলার চালিতাডাঙ্গা গ্রামের ইদ্রিস আলীর পুত্র শফিকুল ইসলাম (৩৪), মাথাইলচাপড় গ্রামের হাছান আলীর পুত্র শরিফ উদ্দিন (২৭) ও বরর্শীভাঙ্গা গ্রামের আব্দুল খালেকের পুত্র গোলাম মোস্তফা (২৮)। কাজিপুর থানার অফিসার ইনচার্জ পঞ্চনন্দ সরকার জানান, রাত্রীতে চোরদের ধরার জন্য আমাদের টহল পুলিশ জোরদার করা হয়েছে। চোরদের ধরতে আমাদের অভিযান চলমান থাকবে।

তিনি আরো বলেন, ‘আটককৃতদের বিরুদ্ধে নিয়মিত চুরির মামলা দায়ের করা হয়েছে। উল্লেখ্য যে, গত মাসেও এই গ্রাম থেকে ৮ টি গরু চুরি হয়েছে।

সিরাজগঞ্জে অরুণ এর ৬ষ্ঠ মৃত্যু বার্ষিকী উপলক্ষ্যে স্মরণ সভা মাসুদ রানা

সিরাজগঞ্জে অরুণ এর ৬ষ্ঠ মৃত্যু বার্ষিকী উপলক্ষ্যে স্মরণ সভা মাসুদ রানা




সিরাজগ ঞ্জজেলা প্রতিনিধিঃ 

সিরাজগঞ্জে গণহত্যা  গণহত্যা অনুসন্ধান কমিটি ও অরুণ ফাউন্ডেশন আয়োজনে  পলাশডাঙ্গা যুবশিবির এর ব্যাটেলিয়ান কমান্ডার মরহুম গাজী লুৎফর রহমান অরুণ এর ৬ষ্ঠ মৃত্যু বার্ষিকী উপলক্ষ্যে স্মরণ সভা অনুষ্ঠিত  হয়েছে । 


গতকাল মঙ্গলবার বাদ আছর  উপজেলা মুক্তিযােদ্ধা কমপ্লেক্স ভবনে বীর মুক্তিযােদ্ধা সাইফুল ইসলাম এর সভাপতিত্বে প্রয়াত  গাজী লুৎফর  রহমান  অরুণ  কর্মময় জীবন   সম্পর্কে

আলোকপাত  করেন সি ইন,সি পলাশডাঙ্গ যুব শিবির'৭১  বীর মুক্তিযােদ্ধা সোহরাব আলী সরকার,বীর মুক্তিযােদ্ধা এ্যাডঃ বিমল কুমার দাস,বীর মুক্তিযােদ্ধা ম.ম. আমজাদ হােসেন মিলন,বীর মুক্তিযােদ্ধা লুৎফর রহমান মাখন,বীর মুক্তিযােদ্ধা আশরাফুল ইসলাম চৌধুরী জগলু,

সাবেক উপজেলা মুক্তিযােদ্ধা কমান্ডার

বীর মুক্তিযােদ্ধা গাজী ফজলুর রহমান খান সহ অন্যান্যরা। বক্তরা বলেন, বঙ্গবন্ধু  শেখ  মুজিবুর  রহমান  এর কণ্যা জননেত্রী  শেখ  হাসিনা  জীবন বাজি রেখে দেশকে এগিয়ে  নিয়ে  যাচ্ছে । মুক্তি যোদ্ধার  কিংবদন্তি  ছিলেন প্রয়াত গাজী লুৎফর রহমান অরুণ। যুবকদের প্রশিক্ষণ পর্ব। ধীরে ধীরে গ্রামগঞ্জের শত শত মুক্তিকামী ছাত্র-জনতা, কৃষক, শ্রমিক এ ক্যাম্পে এসে যোগ দেন।  এখন যারা  জীবিত  রয়েছেন  তারা নতুন প্রজন্মের মাঝে  মুক্তিযোদ্ধার সঠিক  ইতিহাস  তুলে ধরতে হবে। 

অনুষ্ঠানে  পরিচালনা  করেন  সংগঠন গণহত্যা  অনুসন্ধান কমিটির নব কুমার কর্মকার।

মধুপুরে রাইস ট্রান্স প্লান্টার যন্ত্রের মাধ্যমে চারা রোপণ কার্যক্রম ও চারা বিতরণ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত

 মধুপুরে রাইস ট্রান্স প্লান্টার যন্ত্রের মাধ্যমে চারা রোপণ কার্যক্রম ও চারা বিতরণ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত




মো: আ: হামিদ মধুপুর টাঙ্গাইল প্রতিনিধিঃটাঙ্গাইলের মধুপুরে কৃষিসম্রসারণ অধিদপ্তরের আয়োজনে মঙ্গলবার(১৫ সেপ্টেম্বর) দুপুরে কাকরাইদ এলাকায়  রাইস ট্রান্স প্লান্টার যন্ত্রের মাধ্যমে চারা রোপণ কার্যক্রম ও চারা বিতরণ কার্যক্রম অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে।

খরিপ-২/২০২০-২১ মৌসুমে রোপা আমন ধান চাষে প্রণোদনা কর্মসুচীর আওতায় ট্রেতে উৎপাদিত নাবী জাতের ( বি আর-২৩)রোপা আমন ধানের চারা কৃষকদের মাঝে বিতরণ ও কুবোতা রাইস ট্রান্স প্লান্টার যন্ত্রের মাধ্যমে রোপন কর্মসুচী সম্পর্ন হয়েছে। মধুপুর উপজেলা কৃষিকর্মকর্তা কৃষিবিদ মাহমুদুল হাসান এর সভাপতিত্বে উক্ত অনুষ্টানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্হিত ছিলেন অরণখোলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো: আ: রহিম। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্হিত ছিলেন উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা মো: আব্দুর রাশেদ, অরণখোলা ইউনিয়নের ১ নং ওয়ার্ডের  সদস্য মো: আবুল কালাম আজাদ, কাকরাইদ ব্লকের উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা মো: শাহিনুর ইসলাম , ভূটিয়া ব্লকের উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা মো: সেলিম ও আবেদিন ইকুইপমেন্ট লিমিটেডে এর সহকারী ব্যাবস্হাপক মো: রিজওয়ানুর রহমান সহ এলাকার কৃষক কৃষাণীগন  উপস্হিত ছিলেন। এসময় কৃষক কৃষাণীদের মাঝে উৎসাহ বৃদ্ধির লক্ষে জাপানি প্রযুক্তির কুবোতা ব্রান্ডের ধানের চারা রোপণের যন্ত্রের সাহায্যে চারা রোপণ কার্যক্রম প্রদর্শন করা হয়। কৃষি কর্মকর্তা মাহমুদুল হাসান জানান, এ যন্ত্রের মাধ্যমে চারা রোপণ করলে কৃষকদের চারা রোপণ করতে সময় কম লাগবে এবং খরচও কম হবে।

মেধাবী শিক্ষাথীর পাশে দাড়ালো,উমরমজিদ ইউনিয়ন মানব-কল্যান সংগঠন

মেধাবী শিক্ষাথীর পাশে দাড়ালো,উমরমজিদ ইউনিয়ন মানব-কল্যান সংগঠন


মোঃইয়ামিন সরকার আকাশ,কুড়িগ্রাম প্রতিনিধিঃ

মানুষ মানুষের জন্য,জীবন জীবনের জন্য,

একটু সহানুভূতি কি মানুষ পেতে পারে না?এই কথাটির প্রমাণ দিলো,উমরমজিদ ইউনিয়ন মানব-কল্যান সংগঠন।কুড়িগ্রাম জেলার,রাজারহাট উপজেলার,উমরমজিদ ইউনিয়নের এই সংগঠনটি,

মানবতার কল্যাণে সবসময় এক হয়ে কাজ করে আসছে।তারেই ধারাবাহিকতায়

উমরমজিদ ইউনিয়নের পান্থাপাড়া মৌজার

#মোঃ_বায়জিদ_আলম কে একাদশ/আলিম শ্রেনীতে ভতি করে দেওয়ার সুযোগ করে দেয়।মোঃবায়জিদ আলম ২০২০ সালের দাখিল পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হন।

একাদশ/আলিম শ্রেণিতে অনলাইন আবেদনের মাধ্যমে সে ঢাকার তামিরুল মিলাত মাদরাসায় পড়ার সুযোগ পায়।কিন্তু পরিবারের অস্বচ্ছতার কারণে সে আর্থিক খরচের বিপদে পরে। বিষয়টি উমরমজিদ ইউনিয়ন মানব-কল্যাণ সংগঠনের সদস্যদের নজরে এলে  সেটার তৎখানিক  পরিপ্রেক্ষিতে এই দুঃসময়ে পাশে দাঁড়ায় উমরমজিদ ইউনিয়ন মানব-কল্যাণ সংগঠনটি।

আজ মোঃবায়েজিদ আলমের ভহাতে সম্পুর্ণ ভর্তি ফি তুলে দেওয়া হয়।মোঃবায়োজিদ আলম জন্য সংগঠন এর পক্ষ থেকে শুভ কামনা  ও ভালোবাসা জানানো হয়।

হবিগঞ্জে সাবেক ম্যাজিস্ট্রেট শামীম সচিবালয়ে ৩ নারীর মুখোমুখি

 হবিগঞ্জে সাবেক ম্যাজিস্ট্রেট শামীম সচিবালয়ে ৩ নারীর মুখোমুখি




লিটন পাঠান, হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি:বিয়ের প্রতিশ্রুতিতে ধর্ষণ, হবিগঞ্জ জেলা প্রশাসনের সাবেক সহকারী কমিশনার নাদির হোসেন শামীমের বিরুদ্ধে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে বেশ কয়েকজন নারীর সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক স্থাপনের অভিযোগের তদন্ত শুরু করেছে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় (১৩ সেপ্টেম্বর) সচিবালয়ে তলব করা হয় নাদির হোসেন শামীমকে। এদিন জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের উপসচিব উপ সচিব মো. জাহাঙ্গির হোসেনের অফিস কক্ষে দিনভর অভিযুক্ত এবং ভুক্তভোগীদের উপস্থিতিতে তদন্ত কার্যক্রম শুরু হয়। 


শামীম বর্তমানে যশোর জেলা প্রশাসনে সহকারী কমিশনার হিসেবে কর্মরত রয়েছেন। তিনি ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলার পশ্চিম শালীহর গ্রামের আবদুল কুদ্দুসের ছেলে। তার বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগ আনা দুই নারীরই বাড়ি ময়মনসিংহ জেলায়। তাদের মধ্যে একজন বর্তমানে পেশায় শিক্ষিকা এবং আরেকজন একটি বিশ্ববিদ্যালয়ের মাস্টার্সের ছাত্রী। শামীমের প্রতারণার শিকার শিক্ষিকা জানান, এদিন সকাল ১১ টায় উপসচিব মো. জাহাঙ্গির হোসেন তার কাছ থেকে শামীমের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ মৌখিকভাবে শোনার পর তা লিখিত আকারে গ্রহণ করেন।


তিনি অভিযোগের সাথে শামীমের সাথে অন্তরঙ্গ ছবি, মেসেঞ্জারে উভয়ের গোপন বার্তা আদান প্রদানের প্রিন্ট কপিসহ বিভিন্ন আলামত সংযুক্ত করে দেন। শামীম অভিযোগকারী শিক্ষিকার সঙ্গে প্রেম ও শারীরিক সম্পর্কের কথা স্বীকার করেন। বিয়ে না করার সম্পর্কে শামীম বলেন, কলেজে পড়াশোনার সময় ওই নারী রাজনীতিতে জড়িত ছিলেন, একাধিক ছেলেদের সাথে প্রেম ছিল উপ সচিব শামীমের কাছে জানতে চান তার এসব কর্মকা-সরকারি চাকরির।


নীতিমালা ভঙ্গ হয়েছে কি না উত্তরে শামীম তার দোষ স্বীকার করেন।

অপর অভিযোগকারী বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রীর নিকট থেকেও মৌখিক এবং লিখিত বক্তব্য গ্রহণ করেছেন উপ সচিব জাহাঙ্গির হোসেন। ওই ছাত্রী জানান, তার অভিযোগের প্রেক্ষিতে শামীম বলেছেন, আমি নাকি তাকে একতরফা ভালোবেসেছিলাম। শামীম বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে আমার সঙ্গে যে বহুবার শারীরিক সম্পর্ক করেছে কথা অবলীলায় অস্বীকার করেছেন।


উপ সচিবের কাছে তাদের প্রেম সংক্রান্ত কিছু আলামত দিয়েছেন জানান ওই ছাত্রী। এদিকে শিক্ষিকার সাথে যাওয়া অপর এক ছাত্রী জানান, শামীম তার সঙ্গেও প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তুলে একপর্যায়ে তাকে বিয়ে করেছে জানানোর জন্য ওই শিক্ষিকার কাছে নিয়ে গিয়েছিলেন। যাতে ওই শিক্ষিকা শামীমের সাথে সম্পর্ক ছেড়ে দেয়। কিন্তু শামীম পরবর্তীতে তাকে (ছাত্রী) বিয়ে না করে প্রতারণা করেছেন। তিনি শামীমের প্রতারণা সম্পর্কে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।


অভিযোগকারীরা বলেন শামীম সচিবালয়ে তার নব বিবাহিত স্ত্রীকে (সহকারী জজ) সঙ্গে নিয়ে যান সহকারী জজ সচিবালয়ের বিভিন্ন কক্ষে দৌড়ঝাঁপ করতে দেখেছেন তারা।

উপসচিব সচিব ওই তিন নারীকে জানিয়েছেন তিনি অভিযোগ শুনেছেন এসব অভিযোগ আরও তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আশাশুনিতে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তিকে অনুদানের চেক বিতরণ

আশাশুনিতে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তিকে অনুদানের চেক বিতরণ




আহসান  উল্লাহ  বাবলু  উপজেলা  প্রতিনিধি: আশাশুনি উপজেলার থ্যালাসেমিয়া রোগি, স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ও ঘুর্ণিঝড় আম্ফানে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মাঝে সরকারি অনুদানের চেক প্রদান করা হয়েছে। মঙ্গলবার সকালে উপজেলা পরিষদ সম্মেলন কক্ষে এ চেক বিতরণ করা হয়। 

সমাজ কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সমাজ সেবা অধিদপ্তরের সহায়তায় উপজেলা সমাজ সেবা অফিসের উদ্যোগে চেক বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত থেকে চেক বিতরণ উদ্বোধন করেন, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মীর আলিফ রেজা। সমাজ সেবা অফিসার রফিকুল ইসলামের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে ৪ জন থ্যালাসেমিয়া রোগিকে চিকিৎসা সহায়তা বাবদ ৫০ হাজার টাকা করে ২ লক্ষ টাকা, ৮টি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনকে ২০ হাজার টাকা করে ১ লক্ষ ৬০ হাজার টাকা এবং ঘুর্ণিঝড় আম্ফানে ক্ষতিগ্রস্ত ৪৪টি পরিবারকে ৪০০০ টাকা করে ১ লক্ষ ৭৬ হাজার সর্বমোট ৫ লক্ষ ৩৬ হাজার টাকার চেক প্রদান করা হয়।

ভোমরায় বন্দর ফেন্সিডিল মাদক সম্রাজ্ঞী সেলিনা আটক

ভোমরায় বন্দর ফেন্সিডিল মাদক সম্রাজ্ঞী সেলিনা আটক


আহসান  উল্লাহ  বাবলু উপজেলা  প্রতিনিধিঃভোমরার মাদক সম্রাজ্ঞী সেলিনাকে আটক করেছে বিজিবি। সোমবার বিকালে ভোমরা বিজিবি ক্যাম্পের ল্যান্স নায়েক মোতালেবের নেতৃত্বে সিপাহী জিহাদ, তামান্না ও শাহনাজ ভারতের ঘোজাডাঙ্গা সীমান্ত থেকে ফেনসিডিল নিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশের সময় লক্ষ্মীদাঁড়ী সীমান্তের জিরো পয়েন্ট এলাকা থেকে ১২ বোতল ফেনসিডিলসহ সেলিনাকে হাতে নাতে আটক করে। ভোমরা ক্যাম্পের কোম্পানী কমান্ডার (ভারপ্রাপ্ত) জহির বাবর মাদক ব্যবসায়ী সেলিনার আটকের সত্যতা নিশ্চিত করেন। মাদক সম্রাজ্ঞী সেলিনার গ্রেফতারের দাবিতে ভোমরা বন্দরে ফুঁসে ওঠা সর্বস্তরের সাধারন জনগনের জেলা প্রশাসনের নিকট থেকে প্রথম দফায় মাদক বিরোধী মানব বন্ধন করার অনুমতি নেওয়ার প্রস্তুতি এবং দ্বিতীয় দফায় সেলিনা আটক না হলে ৭২ ঘন্টার আল্টিমেটাম দেওয়ার প্রস্তুতি নেয় বন্দর সংশ্লিষ্ট সাধারন জনগন। বন্দর এলাকার জনগনের দাবি পূরনের সকল প্রস্তুতিমূলক কর্মসূচি বাস্তবায়নের আগেই আটক হল মাদক সম্রাজ্ঞী সেলিনা। এই কুখ্যাত মাদক সম্রাজ্ঞী সেলিনার গ্রেফতারের খবরে ভোমরা বন্দরে আনন্দ উল্লাসে মেতে ওঠে সর্বস্তরের লোকজন। এদিকে মাদক সম্রাজ্ঞী সেলিনাকে লক্ষ্মীদাঁড়ী সীমান্ত থেকে আটক করার পর বিজিবি জোয়ানরা তাদের আইসিপি চেকপোষ্ট রুমে নিয়ে আসে। এখান থেকে আটককৃত সেলিনাকে ভ্যান যোগে ভোমরা ক্যাম্পে নিয়ে এসে মাদক আইনে মামলা দিয়ে সাতক্ষীরা সদর থানায় সোপর্দ করেন বিজিবি।

বিশ্বের জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকের বাংলাদেশের দায়িত্ব নিলেন যশোরের দিয়া

 বিশ্বের জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকের বাংলাদেশের দায়িত্ব নিলেন যশোরের দিয়া

সুমন হোসেন, যশোর জেলা প্রতিনিধি: বিভিন্ন দিক থেকে বরাবরই যশোর প্রথম। সেই গৌরবের ইতিহাসের ঝুলিতে এবার যুক্ত হয়েছে আরও একটি প্রাপ্তি। এ প্রাপ্তি এসেছে যশোরের মেয়ে সাবহানাজ রশীদ দিয়ার হাত ধরে। বিশ্বের জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকের বাংলাদেশ বিষয়ক কর্মকর্তা হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন তিনি। যশোরের মেয়ে দিয়া এখন ফেসবুকে বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করছেন।

দিয়া যশোর সদর উপজেলার হৈবতপুর ইউনিয়নের লাউখালি গ্রামের মেয়ে। তার পিতা জনপ্রিয় কার্ডিওলজিস্ট, সমাজসেবক ও ঢাকার ইব্রাহিম কার্ডিয়াক হাসপাতালের সিইও অধ্যাপক ডাক্তার এম এ রশীদ।

চলতি বছরের এপ্রিল থেকে ফেসবুকের বাংলাদেশ অ্যাফেয়ার্স অফিসার হিসেবে কাজ করছেন তিনি। গত সাত সেপ্টেম্বর সিঙ্গাপুরে ফেসবুকের আঞ্চলিক সদর দপ্তরের সাথে এক অনলাইন বৈঠকে যোগদেন ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তফা জব্বার। ভার্চ্যুয়াল সে অনুষ্ঠানে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ দিয়াকে বাংলাদেশের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হিসেবে পরিচয় করিয়ে দেন।

দিয়া একজন টেকলোনজি পলিসি এবং গে¬াবাল ডেভেলপমেন্ট স্পেশালিস্ট। পলিসি রিসার্চ, ডিজাইন এবং ইমপি¬মেন্টেশনে ১৫ বছরের বেশি অভিজ্ঞতা রয়েছে তার। তিনি কাজ করেছেন দক্ষিণ এবং দক্ষিণপূর্ব এশিয়া, দক্ষিণ আফ্রিকা এবং আমেরিকায়। টুইটার এবং গুগলে কাজ করার বেশ অভিজ্ঞতা রয়েছে তার। বাংলাদেশে ওয়ান ডিগ্রি ইনিশিয়েটিভের প্রতিষ্ঠাতা দিয়া। অসংখ্য পুরস্কার ও সম্মাননা অর্জন করেছেন তিনি।

দিয়া বাংলাদেশ ইন্ডিপেনডেন্ট ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থী ছিলেন। আইইউবি থেকে অর্থনীতি, যোগাযোগ এবং চলচ্চিত্র বিষয়ে স্নাতক পাশ করেন তিনি। এরপর স্কলারশিপ নিয়ে চলে যান যুক্তরাষ্ট্রের ইউনিভার্সিটি অব ক্যালিফোর্নিয়ায়। সেখানে ডাটা সায়েন্স এবং প্রযুক্তি বিজ্ঞানে স্নাতোকোত্তর ডিগ্রি লাভ করেন। সিঙ্গাপুরের অফিস থেকেই বাংলাদেশের কান্ট্রি ম্যানেজার হিসেবে দায়িত্ব সামলাবেন তিনি। কনটেন্ট বিষয়ক যেকোনো সমস্যা দ্রুত সমাধান করা তার কাজ। বাংলাদেশ অ্যাফেয়ার্স দেখাশোনার জন্যে এ প্রথম কাউকে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।

আশাশুনিতে পাউবো’র মহাপরিচালক (পরিকল্পনা) এর ভাঙন কবলিত এলাকা পরিদর্শন

 আশাশুনিতে পাউবো’র মহাপরিচালক (পরিকল্পনা) এর ভাঙন কবলিত এলাকা পরিদর্শন




আহসান উল্লাহ বাবলু, উপজেলা প্রতিনিধিঃআশাশুনিতে পাউবো’র মহাপরিচালক (পরিকল্পনা) মোতাহার হোসেন ভাঙন কবলিত এলাকা পরিদর্শন করেছেন। মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলার শ্রীউলা ইউনিয়নের হাজরাখালী বেড়িবাঁধ ভাঙন কবলিত এলাকা পরিদর্শনকালে তিনি বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নদী ভাঙ্গনে ক্ষতিগ্রস্ত সকল বেড়িবাঁধ সংস্কারে দুই হাজার কোটি টাকার প্রকল্পের কাজ অতি দ্রুতই শুরু হবে। তিনি নিজে নদী ভাঙ্গন এলাকা ও বাঁধ নির্মাণ পরিস্থিতি পর্যবেক্ষন করছেন। তার নির্দেশনায় টেঁকসই বাঁধ নির্মান করে নদীপাড়ের মানুষের দুঃখ দুর্দশা লাঘব করা হবে। বাঁধকে টেঁকসই করতে বেড়িবাঁধে বনায়ন ও নদী সংলগ্ন খালগুলো খনন করে পানি নিস্কাশন ব্যবস্থা সহজ করে জলাবদ্ধতা দুর করা হবে। এসময় তিনি খোলপেটুয়া নদীর জোয়ার আটকানোর অংম হিসেবে হাজরাখালী থেকে মাড়িয়ালা হয়ে কোলাঘোলা পর্যন্ত সাড়ে ৬ কি.মি. বিকল্প রিং বাঁধ নির্মানের জন্য স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের ধন্যবাদ জানান। এছাড়াও এলাকাবাসীর পক্ষে জনপ্রতিনিধিবৃন্দ জরাজীর্ণ কলিমাখালী স্লুইচগেটসহ উপজেলার সকল স্লুইচগেট মেরামত ও খাল খননের মাধ্যমে জলাবদ্ধতা নিরসনের দাবী ও প্রতাপনগরের দুটি গ্রামকে জোয়ারভাটা থেকে পরিত্রাণ দিতে আরও দুই কি.মি. বিকল্প রিং বাঁধ নির্মানে সহযোগিতার জন্য উপস্থিত কর্মকর্তাবৃন্দের কাছে আহ্বান জানান। ভাঙন কবলিত এলাকা পরিদর্শনকালে এসময় পানি উন্নয়ন বোর্ডের খুলনা রেঞ্জের চীফ ইঞ্জিনিয়ার রফিক উল্লাহ, এক্সিকিউটিভ ইঞ্জিনিয়ার আবুল হোসেন, সাতক্ষীরার নির্বাহী প্রকৌশলী-২ সুধাংশু সাহা, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান অসীম বরণ চক্রবর্তী, শ্রীউলা ইউপি চেয়ারম্যান আবু হেনা সাকিল প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন ।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতিশ্রুত ৫ লাখ টাকা পেলেন ফুটবলার উন্নতি খাতুন

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতিশ্রুত   ৫ লাখ টাকা পেলেন ফুটবলার উন্নতি খাতুন





ক্রীড়া ডেস্কঃ  গত বছর বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেসা মুজিব জাতীয় গোল্ডকাপ অনূর্ধ্ব-১৭ ফুটবলে সর্বোচ্চ গোলদাতা হয়েছিলেন উন্নতি খাতুন। উদীয়মান এই ফুটবলারের পরিবারের দুর্দশার খবর জানতে পেরেছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। পরে তাকে আর্থিকভাবে সহায়তা প্রদানেরও সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন তিনি। সেই অর্থ মঙ্গলবার জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের সম্মেলন কক্ষে উন্নতি খাতুনের হাতে তুলে দিয়েছেন যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল।


প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে ৫ লাখ টাকা ছাড়াও বঙ্গবন্ধু ক্রীড়াসেবী কল্যাণ ফাউন্ডেশন থেকে মাসিক ক্রীড়া ভাতা ২৪ হাজার টাকা পেয়েছেন উন্নতি। সেই অর্থের চেক প্রদানকালে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল, ‘এটি আমাদের সৌভাগ্য যে আমরা এমন একজন ক্রীড়াবান্ধব প্রধানমন্ত্রী পেয়েছি। তিনি করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত খেলোয়াড়দের সহায়তা করতে তিন কোটি টাকা বরাদ্দ দিয়েছেন। এছাড়াও তিনি অসহায় দুস্থ ক্রীড়াসেবীদের জন্য বঙ্গবন্ধু ক্রীড়াসেবী কল্যাণ ফাউন্ডেশনকে ১০ কোটি টাকা প্রদান করেছেন।’ 


প্রধানমন্ত্রী ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে উন্নতি খাতুন বলেছেন, ‘আমি খুবই আনন্দিত যে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আমার পরিবারের পাশে এসে দাঁড়িয়েছেন। এতে আমি দারুণ ভাবে উৎসাহিত। আমি দেশের জন্য সেরাটাই দেওয়ার চেষ্টা করবো। আমি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রীকে আন্তরিক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানাই।’


এ সময়ে যুব ও ক্রীড়া সচিব মো. আখতার হোসেন, বাংলাদেশ পুলিশের মহাপরিদর্শক ড.বেনজীর আহমেদ ও জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের সচিব মো. মাসুদ করিম উপস্থিত ছিলেন।

মোংলায় প্রতিপক্ষ সন্ত্রাসীদের হামলায় দুই সহদর আহত

মোংলায় প্রতিপক্ষ সন্ত্রাসীদের হামলায় দুই সহদর আহত



মোঃএরশাদ হোসেন রনি, মোংলা:মোংলায় পুর্ব শত্রুতার  জের ধরে দুই ভাইকে কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করেছে প্রতিপক্ষ সন্ত্রাসীরা। রোববার রাতে উপজেলা সুন্দরবন ইউনিয়নের বাশতলা বাজারে একটি দোকানে বসা থাকা অবস্থায় হঠাৎ তাদের উপর হামলা চালায় তারা। সন্ত্রাসীদের বেধরক মারপিটে গুরুতর জখম জুয়েল হাওলাদার ও দুলাল হাওলাদারকে স্থানীয়রা উদ্ধার করে রাতেই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্রে ভর্তি করে। এর মধ্যে জুয়েল হাওলাদারের অবস্থা অবনতি হলে আজ তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এনিয়ে এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। 


থানার অভিযোগ সুত্রে জানা যায়, প্রতিপক্ষ মনিরুল হাওলদার ও তার লোকজনের সাথে দীর্ঘদিন যাবৎ জমি জমা নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল দুলাল হাওলাদারের। গত রবিরার রাতে সুন্দরবন ইউনিয়নের গোড়া বাঁশতলা বাজারে সেলিম ফরাজীর দোকানে বসা ছিলেন জুয়েল হাওলাদার। তাই পুর্ব শত্রুতার জের ধরে প্রতিপক্ষ সন্ত্রাসীরা তাকে উদ্দেশ্য করে অহেতুকভাবে অকথ্যভাষায় গালিগালাজ করতে থাকে। একপর্যায়ে তাদের দেয়া গালিগালাজে প্রতিবাদ করলে হঠাৎ কয়েকজন সন্ত্রাসী তাকে বেধরকভাবে মারপিট করে রাস্তায় ফেলে রাখে। এসময় আশপাশের লোকজনের ডাক-চিৎকারে দুলালের চাচাতো ভাই জুয়েল হাওলাদার ঠেকাতে আসলে তাকে লোহার রড দিয়া হত্যা করার উদ্দেশ্যে মাথায় আঘাত করলে মাথা ফেটে গুর“ত্বর রক্তাক্ত জখম করে। স্থানীয়দের সহায়তায় দুলাল ও জুয়লকে মুমুর্ষ অবস্থায় উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য প্রথমে মোংলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপে­ক্সে ভর্তি করা হয়। মোংলায় চিকিৎসারত অবস্থায় হঠাৎ জুয়েলের অবস্থা অবনতি হলে মঙ্গলবার উন্নত চিকিৎসার জন্য খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। আহত জুয়েল হাওলাদারের অবস্তা আশংঙ্ক জনক বলে জানিয়েছে জুয়েলের স্বজনরা। এ ব্যাপারে সোমবার রাতে মোংলা থানায় দুলাল হাওলাদার বাদী হয়ে মনির“ল হাওলাদার (৪৫), মোঃ মোস্তফা হাওলাদার (২৫), মোঃ মোজাম্মেল হাওলাদার (২০) সহ অজ্ঞত নামা কয়েকজনকে আসামী করে মোংলা থানায় অভিযোগ দেয়া হয়েছে। 


মোংলা থানার সেকেন্ড অফিসার মোঃ জাহাঙ্গীর আলম জানায়, গোঁড়া বাঁশতলা বাজারে একটি মারামারীর ঘটনায় মোংলা থানায় কয়েকজনকে অভিযুক্ত করে একটি অভিযোগ দাখিল করা হয়েছে। এব্যাপারে ঘটনার তদন্তের জন্য এএসআই রাসেল আহাম্মদকে পাঠানো হয়েছে। আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। ###

পটিয়ায় ইয়াবাসহ তিন মহিলা আটক

পটিয়ায় ইয়াবাসহ তিন মহিলা আটক




সেলিম চৌধুরী, পটিয়া প্রতিনিধিঃপটিয়া মাদকদ্রব্য অধিদপ্তর অভিযান চালিয়ে তিন হাজার পিস ইয়াবাসহ তিন মহিলাকে আটক করেছে। ১৫ সেপ্টেম্বর     মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর, জেলা কার্যালয়, চট্টগ্রাম খ-সার্কেল(পটিয়া) এর একটি টিম  তিন হাজার পিস ইয়াবা সহ সাজিদা বেগম(৩৫), শহরমূলক খতিজা বেগম(৫৫), নুর নাহার বেগম,  কক্সবাজার জেলার    টেকনাফ পৌরসভা এলাকায় তাদের বাড়ি। সুএে জানাযায়, ১৫ সেপ্টেম্বরের সকালে         চট্টগ্রাম -কক্সবাজার  মহাসড়কের পটিয়ার  মোজাফফরাবাদ এন জে উচ্চ বিদ্যালয়ের এর বিপরীত পার্শ্বে পার্টস্ ব্যাগে মাদকদ্রব্য অধিদপ্তর কর্মকর্তা গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিয়ান চালিয়ে  এই তিনজনকে পার্টস ব্যাগ  তল্লাশী করে। এতে প্রতিটিতে পার্টস ব্যাগে  লুকানো  এক হাজার করে তিনজন মহিলার কাছে ৩ হাজার পিস ইয়াবা উদ্ধার করে। মাদকদ্রব্য অধিদপ্তর কর্মকর্তা  আটক  মহিলাদের  মাদক সংরক্ষণ ও বহনের অপরাধে আটক করে।  এ ব্যাপারে পটিয়া থানায়  মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে   নিয়মিত মামলা রুজু হয়েছে।


মাদকদ্রব্য অধিদপ্তরের কর্মকর্তা মোঃ সাইফুল ইসলাম জানান, দীর্ঘদিন বিভিন্ন কৌশলে মহিলারা   পার্টস্ ব্যাগে করে ইয়াবাগুলো টেকনাফ থেকে চট্টগ্রাম নিয়ে যাচ্ছিল।গোপন সংবাদে তাদেরকে চ্যালেন্জ করলে তাদের হাতে পাটস্ ব্যাগে তল্লাশি করে তিনজনের কাছে প্রতি ব্যাগে এক হাজার করে ইয়াবা উদ্ধার করা হয়। 

মোংলায় হাতেনাতে মটরসাইকেল চোর আটক

 মোংলায় হাতেনাতে মটরসাইকেল চোর আটক


মোংলা প্রতিনিধিঃমোংলায় এক মটর সাইকেল চোরকে আটক করেছে পুলিশ। পৌর শহরের কেওড়াতলা এলাকার একটি বাড়ী থেকে গাড়ীটি নিয়ে পালিয়ে যাওয়ার পথিমধ্যে পুলিশ তাকে আটক করে। এ ঘটনায় মামলা দায়েরের পর মটর সাইকেল চোরকে বাগেরহাট আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। 


থানায় দায়েরকৃত মামলার প্রেক্ষিতে জানা যায়, পৌর শহরের কেওড়াতওলা এলাকার মৃত পিয়ার আহম্মেদের ছেলে আব্দুল্লাহ আল মামুনের বাড়ীর উঠানে থাকা কালো রংয়ের একটি হিরো হুন্ডা সোমবার রাত সোয়া ১১টার দিকে চুরি করে নিয়ে পালিয়ে যায় সংঘবদ্ধ চোরের দল। পরে বাড়ীর লোকজন উঠানে মটর সাইকেলটি দেখতে না পেয়ে পুলিশকে খবর দেয়। পরে থানার এসআই জাহাঙ্গীর আলম ও কার্তিক চন্দ্র পাল তাৎক্ষনিক অভিযান চালিয়ে কেওড়াতলার বটতলা জিরোপয়েন্ট এলাকা থেকে মটর সাইকেলসহ এক চোরকে আটক করে। এ সময় অপর দুই চোর পালিয়ে যায়। মটর সাইকেলসহ হাতেনাতে আটক চোরের নাম হলো নুরনবী হোসেন ওরফে আল আমিন (২০)। নুরনবী ওরফে আল আমিন সিগনাল টাওয়ার এলাকার জয়নাল আবেদীনের ছেলে। এ ঘটনায় রাতেই থানায় একটি মামলা দায়ের হয়েছে। মামলায় নুরনবী ওরফে আল আমিনসহ পলাতক দুইজনকে আসামী করা হয়েছে। পলাতক দুই আসামী হলেন সিগনাল টাওয়ার এলাকার আলমগীরের ছেলে বাবু হোসেন (২০) ও আন্ধারিয়ার তরিক ইসলামের ছেলে জুয়েল শেখ (১৯)। 

মাধবপুরে ঠিকাদার উধাও, জনচলাচল চরম ভোগান্তিতে!

মাধবপুরে ঠিকাদার উধাও, জনচলাচল চরম ভোগান্তিতে!


লিটন পাঠান, হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি:হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলায় সড়কের কার্পেটিং এর সংস্কার কাজ ফেলে ঠিকাদার উধাও হয়ে গেছে। জানা যায়, উপজেলার শাহজিবাজার দরগা গেইট থেকে বাঘাসুরা কালিবাজার ১ বছরেও সড়কটি সংস্কার না হওয়ায় জনদুর্ভোগ চরম আকার ধারণ করছে। এতে এলাকাবাসীর মধ্যে চরম ক্ষোভ ও হতাশা দেখা দিয়েছে। উপজেলা এলজিইডি অফিস সূত্রে জানা গেছে ১ বছর আগে গুরুত্বপূর্ণ সড়কটি সংস্কারের জন্য কার্যাদেশ পেয়ে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান উভয় পাশে মটি খুড়ে গর্ত করা ও পুরাতন কার্পেটিং তুলে কিছুদিনের মধ্যেই কাজ বন্ধ করে দেয়।


এতে করে রাস্তার গর্তে পানি আটকে পথচারী ও যানবাহন চলাচলে মারাত্মক ব্যাহত হচ্ছে। বাঘাসুরা সহ পার্শ¦বর্তী নাসিরনগর উপজেলার হাজার হাজার মানুষ এ রাস্তা দিয়ে চলাচল করে। মাধবপুর উপজেলা এলজিইডি অফিস সূত্রে জানা গেছে শাহজিবাজার-বাঘাসুরা কালিবাজার পর্যন্ত ১০ কিলোমিটার সড়কে সংস্কার কাজের কার্পেটিংয়ের জন্য টেন্ডার আহ্বান করা হয়। এ রাস্তায় ব্যয় ধরা হয়েছে প্রায় ৮ কোটি টাকা।


ডলি কন্ট্রাকশন নামে একটি ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান টেন্ডারের কাজ পেয়ে অনেক দেরীতে কাজ শুরু করে। টেন্ডার নির্দেশনা মতে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানটি সড়কের পাশে কিছু গর্ত ও কার্পেটিং তুলে কাজ শুরু করার কিছুদিন পরেই কাজ সম্পন্ন না করে মাঝপথে কাজ রেখে চলে যায়। এরফলে এই ভাঙ্গাচুরা রাস্তায় জনগণের চলাচলের ভোগান্তি আরো বেড়ে যায়। স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান শাহাব উদ্দিন আহম্মেদ জানান, এ সড়ক দিয়ে প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষ যাতায়াত করে। কিন্তু জনগুরুত্বপূর্ণ এ সড়কটি সংস্কার না করায় এখন জনগণের দুর্ভোগ চরমে পৌঁছেছে। রাস্তাটি দ্রুত সংস্কারের জন্য বার বার বলার পরও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করছে না।


এ নিয়ে স্থানীয় জনগণের মধ্যে ক্ষোভ ও হতাশার সৃষ্টি হয়েছে। সচেতন জনগণ রাস্তাটি সংস্কারের জন্য মানব বন্ধন সহ নানা কর্মসূচি পালন করেছে। এরপরেও সংশ্লিষ্ট ঠিকাদারের টনক নড়েনি। চেয়ারম্যান শাহাব উদ্দিন আরো বলেন সড়কটি সংস্কার করার জন্য উপজেলা জেলা ও ঢাকায় এলজিইডি সদর দপ্তরে একাধিকবার কথা বলেছি। এমনকি মাধবপুর-চুনারুঘাট আসনের সংসদ সদস্য ও বিমান ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী এডভোকেট মাহবুব আলীকে একাধিকবার অবগত করেছি। তিনি এলজিইডিকে বলার পরেও ঠিকাদার সড়কের সংস্কার কাজ করতে আসেনি।


ডলি কন্ট্রাকশনের একটি সূত্র জানান, করোনার কারণে সড়কটির সংস্কার কাজ সম্পন্ন করা সম্ভব হয়নি। মাধবপুর উপজেলা প্রকৌশলী জুলফিকার চৌধুরী বলেন, সময় মত কাজ শেষ না করায় ডলি কন্ট্রাকশনের টেন্ডার বাতিলের জন্য ঢাকা প্রধান প্রকৌশলী কার্যালয়ে বহু আগেই চিঠি দেওয়া হয়েছে সংশ্লিষ্ট ঠিকাদারের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। নতুন করে টেন্ডার আহ্বান করে সড়কের কার্পেটিং ও সংস্কার কাজ সম্পন্ন করতে উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

মহেশপুরের যাদবপুর সীমান্তে ভারতীয় ফেন্সিডিল জব্দ

 মহেশপুরের যাদবপুর সীমান্তে ভারতীয় ফেন্সিডিল জব্দ




খোন্দকার আব্দুল্লাহ বাশার,খুলনা ব্যুরো প্রধান:আজ মঙ্গলবার ১৫ই সেপ্টেম্বর সকালে মহেশপুরের যাদবপুর সীমান্তে ভারতীয় ফেন্সিডিল জব্দ করেছে ৫৮ বিজিবি। 


বিজিবি সূত্রে প্রকাশ, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ৫৮ বিজিবির অধিনস্ত যাদবপুর বিওপির হাবিলদার আব্দুর রহমানের নেতৃত্বে একটি টহল দল অভিযান চালিয়ে উপজেলার বড়বাড়ী রাজাপুর মাঠের ভিতর থেকে ১৭৩ বোতল ভারতীয় ফেন্সিডিল জব্দ করে। এ সময় বিজিবির উপস্থিতি টের পেয়ে মাদক ব্যবসায়ীরা পালিয়ে যায়। এ ব্যাপারে মহেশপুর থানায় মাদক আইনে মামলা হয়েছে।

ফলোআপঃদৌলতপুর উপজেলার বিভিন্ন জায়গায় অভিনব কৌশলে চলছে মাদক ব্যাবসা!

ফলোআপঃদৌলতপুর উপজেলার বিভিন্ন জায়গায় অভিনব কৌশলে চলছে মাদক ব্যাবসা!

কুষ্টিয়া জেলা প্রতিনিধিঃবাংলাদেশ ভারত সীমান্ত বর্তী এলাকা কুষ্টিয়া জেলার ২৪২টি গ্রাম নিয়ে গঠিত দৌলতপুর উপজেলা । সীমান্ত এলাকা হওয়ায় উপজেলার বিভিন্ন সীমান্ত পয়েন্ট দিয়ে প্রতিদিন দেশের অভ্যন্তরে ভারত থেকে অবাধে আসছে মরণ নেশা ফেনসিডিল, হেরোইন, মদ ও গাঁজা। প্রতিদিন বিজিবি, র‌্যাব ও পুলিশের অভিযানে কিছু মাদক ধরা পড়লেও বিভিন্ন কৌশল অবলম্বন করে সিংহভাগ মাদক মজুদ ও পাচার করছে মাদক ব্যবসায়ীরা। বর্তমানে সীমান্ত এলাকায় বেপরোয়া হয়ে উঠেছে মাদক ব্যবসায়ীরা।


মাত্র কয়েকদিন আগে মথুরাপুর বাজার সংলগ্ন মোটরমেকানিক হানিফকে ফেন্সিডিল সহ র্্যাব গ্রেফতার করলেও অন্য গুলোর থেমে নেই এই ব্যাবসা।  সরেজমিনে দৌলতপুর সীমান্ত এলাকা ঘুরে দেখা যায়, সীমান্তের রামকৃষ্ণপুর ইউনিয়নের মুন্সীগঞ্জ, মোহাম্মদপুর, ডাঙ্গেরপাড়া ও তালপট্টি, চিলমারী ইউনিয়নের মরারচর, হবিরচর, উদয়নগর, বাজুমারা ও বাংলাবাজার , প্রাগপুর ইউনিয়নের প্রাগপুর, বিলগাথুয়া, ময়রামপুর, মহিষকুন্ডি মাঠপাড়া ও জামালপুর ভাঙ্গাপাড়া, আদাবাড়িয়া ইউনিয়নের গড়ুরা, ধর্মদহ ও কাজিপুর , সহ বিভিন্ন সীমান্ত পয়েন্ট দিয়ে দিনে ও রাতে ভারত থেকে আসছে ফেনসিডিল, হেরোইন, গাঁজা ও মদ সহ বিভিন্ন মাদকদ্রব্য। এলাকাবাসী জানায়, প্রথমে মাদক বহনকারীরা সীমান্তের ওপার থেকে ফেনসিডিলসহ অন্যান্য মাদকদ্রব্য পুটলি বা বস্তায় করে আবার পদ্মায় পানি বেড়ে গেলে প্লাস্টিক বস্তায় বেঁধে সাঁতরে, অথবা পানিতে ভাসিয়ে নিয়ে নদী পার হয়ে বাংলাদেশের মাদক ব্যবসায়ীর কাছে পৌঁছে দেয়। এরপর তারা সুবিধামতো স্থানে মজুদ করে চাহিদা অনুসারে পৌছে দেয়া হচ্ছে রাজধানী ঢাকা, কুষ্টিয়া, রাজবাড়ি, ফরিদপুরসহ নির্দিষ্ট গন্তব্যে। তারা আরো জানায়, বর্তমানে প্লাস্টিকের বোতলজাতকৃত ফেনসিডিল যেখানে কাঁটাতার আছে সেখানে ভারতীয়রা ছোট ছোট পুটলি বেঁধে বিভিন্ন মাদকদ্রব্য কাঁটাতারের ওপার থেকে এপারে ছুড়ে ফেলে এবং বাংলাদেশী মাদক ব্যবসায়ীরা সেগুলো কুড়িয়ে নিয়ে তাদের গন্তব্যে নিয়ে যাচ্ছে। সীমান্তের মুন্সীগঞ্জ, জামালপুর, আবেদের ঘাট এবং ভাগজোত এলাকার এক ডজন ব্যক্তি এ মাদক ব্যবসা নিয়ন্ত্রণ করছে বলে স্থানীয় সুত্রগুলো জানায়। একইভাবে প্রাগপুর, গড়ুরা, ধর্মদহ, শেহালা, ডাংমড়কা, মথুরাপুর, তারাগুনিয়া, হোসেনাবাদ, আবেদের ঘাট, আল্লারদর্গা, রিফাইতপুর ও দৌলতপুর সহ উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় পৃথক পৃথক মাদক সিন্ডিকেটের মাধ্যমে এই ব্যবসা নিয়ন্ত্রিত হচ্ছে বলে সুত্রগুলো নিশ্চিত করেছে। এদিকে উপজেলার প্রাগপুর, রঘুনাথপুর, বিশ্বাসপাড়া, ময়রামপুর, বিলগাথুয়া, মহিষকুন্ডি, জামালপুর, জামালপুর ভাঙ্গাপাড়া, ধর্মদহ, তেকালা, গড়ুরা, ভাগজোত, মথুরাপুর, হোসেনাবাদ, সিরাজনগর, আবেদের ঘাট, ফিলিপনগর, রিফাইতপুর, সোনাইকান্দি, সাদিপুর, বেগুন বাড়িয়া, আল্লারদর্গা, সোনাইকুন্ডি, তারাগুনিয়া, খলিশাকুন্ডি, বৈরাগীরচর সহ বিভিন্ন স্থানে শতাধিক মাদকের আস্তানা গড়ে উঠায় সে সকল এলাকায় প্রতিনিয়ত রং বেরঙের পরিচিত, অপরিচিত দামী দামী প্রাইভেটকার ও মোটর সাইকেল আরোহীরা যাতায়াত করছে বলে স্থানীয়রা জানিয়েছেন। বাসিন্দারা জানিয়েছেন মাদক দ্রব্যের আস্তানা বৃদ্ধি পাওয়াতে উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছে এখানকার স্কুল/কলেজ পড়ুয়া ছাত্রদের অবিভাবকরা। এ ব্যাপারে দৌলতপুর থানার নবাগত ভারপ্রাপ্ত কর্মক্তা জহুরুল ইসলামের কাছে মুঠোফোনে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমার থানায় মাদক ব্যাবসা তো দুরের কথা মাদকই থাকবে না । আর যারা জড়িত তাদেরকে অতিসত্তর আইনের আওতায় আনা হবে। তিনি আরো জানান, মাদক ব্যবসায়ীদের সাথে যদি কোন পুলিশ সদস্যের সংশ্লিষ্টতা পাওয়া যায় তার বিরেুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

সাতক্ষীরায় ১০ হাজার গণস্বাক্ষরসহ জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে জেলা নাগরিক কমিটির স্মারকলিপি পেশ

 সাতক্ষীরায় ১০ হাজার গণস্বাক্ষরসহ জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে জেলা নাগরিক কমিটির স্মারকলিপি পেশ

আজহারুল ইসলাম সাদী, স্টাফ রিপোর্টারঃনানা দূর্যোগের স্বীকার সাতক্ষীরা উপকূলের মানুষকে রক্ষা কল্পে ২১ দফা দাবীতে মঙ্গলবার (১৫ সেপ্টেম্বর) বেলা সাড়ে ১১টায় সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক এর কার্যালয়ের সামনে অবস্থান, মানববন্ধন ও প্রধানমন্ত্রীর নিকট সাতক্ষীরাবাসীর গণস্বাক্ষর সম্বলিত স্মারকলিপি পেশ করেন, সাতক্ষীরা জেলা নাগরিক কমিটি।


সাতক্ষীরা জেলার উপকূলবর্তী এলাকাসহ জেলার বিভিন্ন এলাকা এখনও পানির নিচে। হাজার হাজার মানুষ পানিবন্দি অবস্থায় মানবেতর জীবনযাপন করছে।  মানুষের দুর্ভোগ বর্ণানাতীত। সামগ্রিক প্রেক্ষাপটে  সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক কার্যালয় এর সামনে অবস্থান মানববন্ধন এ জেলা নাগরিক কমিটির সভাপতি অধ্যক্ষ আনিসুর রহিম এর সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, অধ্যক্ষ আবু আহমেদ, অধ্যক্ষ আব্দুল হামিদ, এড. আবুল কালাম আজাদ, এড.শেখ আজাদ হোসেন বেলাল, সুধাংশু শেখর সরকার, বীরমুক্তিযোদ্ধা আবু বকর সিদ্দিকী, আনোয়ার জাহিদ তপন, ওবায়দুস সুলতান বাবলু, অধ্যক্ষ আশেক-ই-এলাহী, এড. আল মাহামুদ পলাশ, কমরেড আবুল হোসেন, নিত্যানন্দ সরকার, প্রভাষক ইদ্রিশ আলী, মাধব চন্দ্র দত্ত, অপারেশ পাল, শফিকুল ইসলাম, এড. কাজী আব্দুল্লাহ আল হাবিব, শেখ সিদ্দিকুর রহমান, মুনসুর রহমান, ইয়ার আলী, আব্দুস সাত্তার, কায়সারুজ্জামান হিমেল, কওসার আলী, আব্দুস সামাদ, মমিন হাওলাদার, পরিতোষ বৈদ্দ, আবিদুর রহমান, পিন্টু বাওলীয়া, লুৎফর রহমান, ডাঃ শহিদুল ইসলাম, মনোরঞ্জন ব্যনার্জি, মিজানুর রহমান, মীর জিল্লুর রহমান, দীলিপ সানা, আলী নুর খান বাবলু প্রমুখ।

গণমানুষের প্রাণের দাবি বাস্তবায়নে এ কর্মসূচিতে সর্বস্তরের মানুষ অংশগ্রহণ করেন।

বৃষ্টি কে উপেক্ষা করে ওই অবস্থায় চলমান থাকা মানববন্ধন ও বক্তব্য শেষে, বেলা ১ টার দিকে, জেলা প্রশাসক এস এম মোস্তফা কামাল এর মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবর ১০.৮৮৭ গণস্বাক্ষরিত স্মারকলিপি প্রেরণ করা হয়।

এসময় নাগরিক কমিটির সাথে সমন্বয় প্রকাশ করে জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মোস্তাফা কামাল বলেন সাতক্ষীরা'র পানি বন্দি আপামর গণমানুষের সুবিধার্থে তিনি সর্বাত্মক সহযোগিতা করবেন।

তথ্য অধিকার আইন নিয়ে কর্মশালা অনুষ্ঠিত

তথ্য অধিকার আইন নিয়ে কর্মশালা অনুষ্ঠিত




খোন্দকার আব্দুল্লাহ বাশার,খুলনা ব্যুরো প্রধানঃ সুশাসন প্রতিষ্ঠায় তথ্য অধিকার আইন’ বিষয়ে খুলনা আঞ্চলিক লোক প্রশাসন প্রশিক্ষণ কেন্দ্র তাদের মিলনায়তনে আজ (মঙ্গলবার) দিনব্যাপী এক কর্মশালার আয়োজন করে। 

 কর্মশালার সমাপনীতে খুলনার বিভাগীয় কমিশনার ড. মু: আনোয়ার হোসেন হাওলাদার প্রধান অতিথির বক্তৃতায় বলেন, জনগণকে জানার সুযোগ দিতে হবে। জানার সুযোগ তৈরি হলে জনসাধারণ সহসী হবে এবং সুশাসন প্রতিষ্ঠায় ভূমিকা রাখবে।


 কর্মশালায় ধারণাপত্র উপস্থাপন করেন খুলনা আঞ্চলিক তথ্য অফিসের উপপ্রধান তথ্য অফিসার ম. জাভেদ ইকবাল। মডারেটরের দায়িত্ব পালন করেন খুলনা আঞ্চলিক লোক প্রশাসন প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের উপপরিচালক মোঃ তবিবুর রহমান।


 এর আগে সকালে অনলাইনে যুক্ত হয়ে ঢাকা হতে বাংলাদেশ লোক প্রশাসন প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের রেক্টর রকিব হোসেন ঢাকা, খুলনা, চট্রগ্রাম ও রাজশাহী আঞ্চলিক লোক প্রশাসন প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে একযোগে একই বিষয়ের ওপর অনুষ্ঠিত কর্মশালার উদ্বোধন করেন। 


 উদ্বোধনকালে রেক্টর বলেন, তথ্য অধিকার আইন বাস্তবায়িত হলে সরকারি-বেসরকারি সংস্থায় স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা বৃদ্ধি পাবে, দুর্নীতি হ্রাস পাবে এবং সুশাসন প্রতিষ্ঠিত হবে। 


 কর্মশালায় খুলনার বিভিন্ন সরকারি দপ্তরের ২৬ কর্মকর্তা অংশ নিয়ে তথ্য অধিকার আইনের ওপর সুপারিশমালা তৈরি করেন।

নওগাঁর আত্রাইয়ে ইউএনওর হস্তক্ষেপে বাল্য বিয়ে বন্ধ

নওগাঁর আত্রাইয়ে ইউএনওর হস্তক্ষেপে বাল্য বিয়ে বন্ধ





মোঃ ফিরোজ হোসাইন 

রাজশাহী ব্যুরো


 নওগাঁর আত্রাইয়ে ইউএনওর হস্তক্ষেপে বাল্য বিয়ে বন্ধ হয়েছে। ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে জামাই ও শ্বশুরের সাজা দেওয় হয়েছে। আটককৃতরা হলো সাইদুল ইসলাম(৪৯) ও মেহেদী হাসান(২০)।


জানা যায়, সোমবার দিবাগত রাতে উপজেলার মির্জাপুর গ্রামে সাইদুল ইসলামের মেয়ের সাথে মিরাপুর গ্রামের আঃ কুদ্দুর হোসেনের ছেলে মেহেদী হাসানের বাল্য বিয়ে অনুষ্ঠিত হচ্ছে।


গোপন সংবাদ পেয়ে আত্রাই থানার এস আই মোস্তাফিজুর ও সঙ্গীয় ফোর্সসহ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ ছানাউল ইসলাম উপস্থিত হয়ে তাদের আটক করেন। পরে ভ্রাম্যমান আদালত বসিয়ে শ্বশুর সাইদুল ইসলাম কে ১৫ দিনের সাজা এবং জামাই মেহেদী হাসানকে ৩০ হাজার টাকা জরিমানা করেন।

মেয়র পদপ্রার্থী বীর মুক্তিযোদ্ধা রেজাউল করিম চৌধুরী অগ্নিকাণ্ডের ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারে মাঝে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ

মেয়র পদপ্রার্থী বীর মুক্তিযোদ্ধা রেজাউল করিম চৌধুরী অগ্নিকাণ্ডের ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারে মাঝে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ





কাজী মোঃ সাজ্জাদ হাসান 


পাঁচলাইশ ৩নং ওয়ার্ড পূর্ব শহীদ নগর,গাউছিয়া জামে মসজিদ সংলগ্ন কামাল সওদাগরের পুরাতন বাড়ির অগ্নিকাণ্ডের ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারদের মাঝে শুকনো খাদ্য ও উপহার সরূপ প্রয়োজনীয় হাঁড়ি-পাতিল বিতরণ করেন এবং পরবর্তী সাহায্য সহোযোগিতার জন্য আশ্বস্ত করেন "চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামীলীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ও আওয়ামীলীগ মনোনীত মেয়র পদপ্রার্থী রেজাউল করিম চৌধুরী।


অগ্নিকাণ্ডের স্থান পরিদর্শন ও ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারদের সাথে সৌজন্যে সাক্ষাৎ এর শেষে "শহীদ নগর গাউছিয়া জামে মসজিদ" ও শহীদ পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিদর্শন করেন।


শহীদ পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের জরাজীর্ণ পরিত্যক্ত মাঠ ও বিদ্যালয়ের পরিবেশে দেখে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন তথা মহানগর এলাকায় এমন আর একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান আছে কিনা বলে আক্ষেপ প্রকাশ করেন এবং প্রথমিক বিদ্যালয়ের সংশ্লিষ্ট থানা শিক্ষা কর্মকর্তা ও টিইউনো এর সাথে কথা বলে উক্ত বিদ্যলয়ের মাঠ ভরাট ও পরিবেশে  রক্ষণাবেক্ষণে প্রয়োজনীয় ব্যবস্তা ও নতুন মসজিদের চলমান কাজের জন্য সাহায্য সহোযোগিতা করার আশ্বাস প্রধান করেন।

সখীপুর উপজেলা শাখা জাতাীয়তাবাদী যুবদলের কর্মী সভা অনুষ্ঠিত

 সখীপুর উপজেলা শাখা জাতাীয়তাবাদী যুবদলের কর্মী সভা অনুষ্ঠিত

ডা.এম.এ.মান্নান,টাংগাইল জেলা প্রতিনিধি: টাঙ্গাইলে সখীপুর উপজেলা জাতাীয়তাবাদী যুবদলের কর্মী সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।


 আজ মঙ্গলবার,১৫ সেপ্টেম্বর ২০২০ খ্রি. দুপুরে রাজু ক্যাডেট একাডেমি এন্ড স্কুল হলে  সখীপুর উপজেলা যুবদল আয়োজিত কর্মী সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন, কেন্দ্রীয় যুবদলের সহসভাপতি জাকির হোসেন নান্নু।


জেলা যুবদলের আহবায়ক আশরাফ পাহেলীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে কেন্দ্রীয়, জেলা ও উপজেলা যুবদলের নেতৃবৃন্দ বক্তব্য রাখেন।


এতে আরও  বক্তব্য রাখেন, কেন্দ্রীয় যুবদল ঢাকা বিভাগের সহ-সভাপতি মজিবুর রহমান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন আনু, সি: যুগ্ম আহবায়ক, টাঙ্গাইল জেলা যুবদল খন্দকার রাশেদুল আলম রাসেদ, সাংগঠনিক সম্পাদক মহসিন হোসেন বিদ্যুৎসহ বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ

দিনাজপুরের রেলওয়ের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ অভিযান শুরু

 দিনাজপুরের রেলওয়ের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ অভিযান শুরু





মামুনুর রশিদ।দিনাজপুর প্রতিনিধি:উন্নয়ন কাজ ও রেললাইন প্রসস্থকরনের জন্য দিনাজপুর রেলষ্টেশন থেকে কাঞ্চন রেলব্রীজ পর্যন্ত অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ অভিযান শুরু হয়েছে। আজ মঙ্গলবার সকাল থেকে এই উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রেলওয়ে লালমনিরহাটের বিভাগীয় ভূমি কর্মকর্তা পূর্ণেন্দু দেব। এসময় তিনি জানান, উচ্ছেদ অভিযান করার আগেই দখলদারদের অবগত করা হয়েছে। অনেকে স্ব-ইচ্ছায় চলে গেছেন। তবে যারা যাননি তাদের উচ্ছেদ করা হচ্ছে। দ্রুতগামী রেল চলাচল করার কারনে এই দুইধার দিয়ে দেয়াল নির্মানের প্রকল্প হাে নেয়া হয়েছে। তিনি আরও বলেন, উচ্ছেদের পর যাতে কেউ আবার বসতে না পারে সেই ব্যবস্থাও নেয়া হবে। তবে একদিনে অভিযান শেষ না হলে সময় আরো বাড়ানো হবে।

প্রতাপনগর আবারো ভাঙলো রিংবাঁধ

প্রতাপনগর আবারো ভাঙলো রিংবাঁধ


আহসান উল্লাহ বাবলু উপজেলা  প্রতিনিধিঃ প্রতাপনগরের মানুষের ভবিষ্যৎ নিয়ে প্রতিনিয়ত ছিনিমিনি খেলছে। বানভাসি মানুষের কষ্ট শেষ হয়েও যেনো হচ্ছেনা শেষ। প্রবাদ বচনে আছে অভাগা যেদিকে যায় সাগর শুকিয়ে যায়। তেমনি যেনো শত চেষ্টা করে ও বিফল হচ্ছে প্রতাপনগরের প্লাবিত মানুষ। বিগত ২০ মে ঘূর্ণিঝড় আম্পান থেকে লবণপানি ও সকল প্রতিকূলতার সাথে সংগ্রাম করে জীবন যাপন করতে হচ্ছে তাদের। এরই মধ্যে মড়ার উপর খাড়ার ঘা হয়ে দেখা দেয় বিগত ২০ আগস্টের জোয়ারের উচ্চতা এবং তিব্র স্রোতেসকল কিছু পানির নিচে তলিয়ে উপকূলীয় প্রতাপনগর ইউনিয়নের প্রধান কার্পেটিং সড়ক ভেঙে, উপজেলা, জেলা শহরে যাতায়াতের ব্যবস্থা বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। নিত্য প্রয়োজনীয় খাদ্যদ্রব্য পৌঁছাতে ও চরম ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে। যাতায়াতের একটি মাত্র ব্যবস্থা নৌকা, প্রবল স্রোতে নৌকাডুবির ঘটনা ও ঘটেছে নিয়মিত। নোংরা, পঁচা পানিতে বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হচ্ছে মানুষ। আমাবস্যার জোয়ার কিছুটা ছোট হলে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানের ডাকে সাড়া দিয়ে এলাকাবাসী স্বেচ্ছাশ্রমেরভিত্তিতে প্রধান কার্পেটিং সড়ক আটকাতে চেষ্টা করে ও ব্যর্থ হয়। তারপর ও সকল প্রতিকূল অবস্থা উপেক্ষা করে বিগত ৫ সেপ্টেম্বর শনিবার সকাল থেকে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি জনাব শেখ জাকির হোসেন উপজেলা পরিষদ ও পানি উন্নয়ন বোর্ডের সহযোগিতার মাধ্যমে সকল স্তরের মানুষকে সাথে নিয়ে, এলাকাবাসীর স্বেচ্ছাশ্রমের ভিত্তিতে, বেশ কয়েকদিন আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়ে প্রধান কার্পেটিং সড়কের কালভার্টের পাশদিয়ে রিংবাঁধ দিতে সমর্থ হয়। কিন্তুু সোমবার সকালে জোয়ারে পানি বৃদ্ধি হয়ে সকল পরিশ্রম প- করে দিয়ে প্রধান কার্পেটিং সড়কের রিংবাঁধ দুই জায়গা থেকে ভেঙে যায়। সারাদিন ইউপি চেয়ারম্যান শেখ জাকির হোসেনের নিজস্ব অর্থায়ন এবং এলাকাবাসী ও পানি উন্নয়ন বোর্ডের সহযোগিতা নিয়ে ঝুঁকিপূর্ণ কালভার্টটি আটকাতে সক্ষম হয়।



চিরিরবন্দরে ট্রাক্টরের ধাক্কায় নারীর মৃত্যু

চিরিরবন্দরে ট্রাক্টরের ধাক্কায় নারীর মৃত্যু


মামুনুর রশিদ, দিনাজপুর প্রতিনিধি ঃদিনাজপুরের চিরিরবন্দরে ট্রাক্টরের ধাক্কায় মোটরসাইকেল আরোহী শাপলা খাতুন (৩৭) নামে একজন নারী নিহত হয়েছেন।

ঘটনাটি ঘটেছে ১৫ই সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার সকাল ১০ টার দিকে চিরিরবন্দর উপজেলার আঞ্চলিক সড়ক হেলিপোর্ট এলাকায়। নিহত শাপলা খাতুন চিরিরবন্দর উপজেলার অমরপুর ইউনিয়নের শান্তির বাজার এলাকার শাহাপাড়ার শামীম সরকারের  স্ত্রী বলে জানাগেছে ।

ওই এলাকার স্থানীয়রা জানান, স্বামী সন্তানসহ মোটরসাইকেল যোগে শাপলা খাতুন কারেন্ট-হাট যাওয়ার পথে আঞ্চলিক সড়ক হেলিপোর্ট এলাকায় এসে পৌচ্ছালে বিপরীত দিক থেকে আসা দ্রুতগামী একটি ট্রাক্টর মোটর সাইকেলটিকে সজোড়ে ধাক্কা দিলে শাপলা খাতুন ট্রাক্টরের চাকার নিচে পড়ে যায় ও ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। এ বিষয়ে চিরিরবন্দর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সুব্রত কুমার সরকার ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

দিনাজপুরে সনেকা রানী দাসকে বিবাহ পরবর্তী ছেড়ে দেওয়া ও নির্যাতনের প্রতিবাদ মানববন্ধন

 দিনাজপুরে  সনেকা রানী দাসকে বিবাহ পরবর্তী ছেড়ে দেওয়া ও নির্যাতনের প্রতিবাদ  মানববন্ধন

 




মামুনুর রশিদ,দিনাজপুর প্রতিনিধিঃ দিনাজপুর সদর উপজেলার কালিতলা নিবাসি মৃত নরেশ চন্দ্র ব্যানার্জি, মাতা- মৃত কল্যাণি রাণি ব্যানার্জির পুত্র এবং বাপ্পি ব্যানার্জির ছোট ভাই শ্রী দুর্জয় কুমার ব্যানার্জি কোতয়ালী- চিরিরবন্দরের মধ্যবর্তি মাদারগঞ্জ হাটের উত্তর পার্শ্বে অবস্থিত ঐতিহ্যবাহী শ্রী শ্রী চিবুকা দেবীর মন্দিরে পুরোহিতের কাজে নিয়োজিত ছিল। উক্ত মন্দিরে নিয়োজিত থাকা অবস্থায় চিরিরবন্দর উপজেলার আরোজি গোলাহার গ্রামের শ্রী টুলু রাম দাস ও মাতা রেনু বালা দাসের এক মাত্র কণ্যা শ্রী মতি সনেকা রানী দাসের সাথে ২০০০ সালে এফিডেভিট মাধ্যমে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়। এক বছর সংসার করার পর সনেকা রানি দাসকে তার বাবার বাড়িতে রেখে দুর্জয় কুমার ব্যানার্জি তার বড় ভাই বাপ্পি ব্যানার্জি এবং ছোট বোন তিলত্তমা ব্যানার্জি তাকে সুকৌশলে তাদের বাড়ি থেকে জেলার ফুলবাড়ীতে নিয়ে যায়। ফুলবাড়ীতে গিয়ে বাপ্পি কুমার ব্যানার্জি সনেকা রানি দাসকে একটি ডিভোর্স পেপার পাঠিয়ে দেয়। পরবর্তীতে সনেকা রানী দাস উপায় অন্তর না পেয়ে ফুলবাড়ীতে খোজাখুজি করে না পেয়ে বাংলাদেশ লিগ্যাল এইড এন্ড সার্ভিসেস্ ট্রাস্ট (ব্লাস্ট), দিনাজপুর ইউনিটে একটি অভিযোগ দায়ের করলে দুর্জয় কুমার ব্যানার্জি উপস্থিত না হয়ে তার বড় ভাই বাপ্পি ব্যানার্জি উপস্থিত হয়। অসহায় সনেকা রানী দাস ব্র্যাক- বিডিপি লিগ্যাল এইড প্রোগ্রামে অভিযোগ দাখিল করলেও তার বড়ভাই বলে আমার ছোট ভাই নিখোজ। এমতাবস্থায় সনেকা রানী দাস ন্যায় বিচারের দাবিতে জেলা দিনাজপুরের বিজ্ঞ জেলা জজ আদালতে মামলা দায়ের করলেও দীর্ঘ দিন ধরে কোন প্রকার ন্যায় বিচার না পেয়ে সনেকা রানী দাস বিভিন্ন মহলে ন্যায় বিচারের দাবিতে যোগাযোগ করতে থাকে। তারই সূত্র ধরে দিনাজপুর জেলার সদর উপজেলার কৃষানবাজারস্থ সিডিসি প্রাঙ্গনে ইয়ুথ ফর হিউম্যান রাইটস্ ইন্ট্যারন্যাশনাল ফাউন্ডেশন বাংলাদেশ, দিনাজপুর জেলা কমিটি, কমিউনিটি ডেভেলপমেন্ট সেন্টার (সিডিসি), দিনাজপুর এবং আমিই পারি নেটওয়ার্কের সহযোগিতায় এলাকাবাসির অংশগ্রহনে শ্রী দুর্জয় কুমার ব্যানার্জী কর্তৃক নির্যাতিত শ্রীমতি সনেকা রানী দাসকে বিবাহ পরবর্তী ছেড়ে দেওয়া ও নির্যাতনের প্রতিবাদ এবং ন্যয় বিচারের দাবীতে এক মানববন্ধন কার্যক্রম বাস্তবায়ন করা হয়। উক্ত মানববন্ধন কার্যক্রমে নির্যাতিত অসহায় নারী সনেকা রানী দাস, তার পিতা টুলু রাম দাস এবং মাতা রেনু বালা দাস তাদের অসহায়ত্বের করুন কাহিনী তুলে ধরেন। মানববন্ধন কার্যক্রমে নির্যাতিত সনেকা রানী দাসের এলাকার সচেতন নারী পুরুষ অংশগ্রহণ করেন। এছাড়াও এ কার্যক্রমে ইয়ুথ ফর হিউম্যান রাইটস্ ইন্ট্যারন্যাশনাল ফাউন্ডেশন বাংলাদেশ, দিনাজপুর জেলা কমিটির সভাপতি, সিডিসি’র নির্বাহী পরিচালক এবং আমিই পারি নেটওয়ার্কের সমন্বয়ক সাংবাদিক ও মানবাধিকার কর্মী যাদব চন্দ্র রায় এর সক্রীয় নেতৃত্বে আরও অংশগ্রহন করেন ইয়ুথ ফর হিউম্যান রাইটস্ ইন্ট্যারন্যাশনাল ফাউন্ডেশন বাংলাদেশ, দিনাজপুর জেলা কমিটির সদস্য মোঃ রাজু আহম্মেদ, মোঃ মঞ্জু হোসেন, রাজেশ রায় এবং তপন রায়। নেতৃবৃন্দরা সনেকার নির্যাতনের ন্যায় বিচার সহ তার ন্যায্য অধিকার ফিরে পাওয়ার জন্য প্রশাসনের উচ্চ মহলের সুদৃষ্টি কামনা করে। আগামী ২-১ দিনের মধ্যে মাননীয় জেলা প্রশাসক বরাবরে স্মারকলিপি দেওয়ার প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়।

চরফ্যাসনে পল্লী চিকিৎসকের বিরুদ্ধে ভূল চিকিৎসা করার অভিযোগ

চরফ্যাসনে পল্লী চিকিৎসকের বিরুদ্ধে ভূল চিকিৎসা করার অভিযোগ


 

চরফ্যাসন (ভোলা) প্রতিনিধি:

চরফ্যাসন উপজেলার দুলারহাট থানাধীন নীলকমল ইউনিয়ন কাশেম মিয়ার বাজারের গ্রাম্য ডাক্তার মোঃ আলমগীরের বিরুদ্ধে ভূল চিকিৎসা করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। ডাক্তারের ভূল চিকিৎসায় নুরমোহাম্মদ ওরফে শান্ত (৮) নামের এক শিশুর হাতের একটি আঙ্গুল হারাতে চলেছে। সে লালমোহান উপজেলার চরউমেদ ৪নং ওয়ার্ডের মোঃ নুরে আলমের ছেলে।  ২১আগষ্ট ডাক্তার আলমগীর শিশুটির কাটা আঙ্গুল সেলাই করেন।


এদিকে কয়েকদিন যেতেই ক্ষতস্থানে পচন ধরে এবং তার হাতের আঙ্গুলের অবনতি ঘটে। নিরুপায় হয়ে গত ৯সেপ্টেম্বর লালমোহন হাসপাতালে শিশুটিকে নিয়ে যান শিশুটির পরিবার।


শিশুটির পরিবারের লোকজন অভিযোগ করে বলেন, শান্তর হাতের একটু আঙ্গুল কেটে যায়। হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য রওয়ানা হলে কাশেম মিয়ার বাজারের গ্রাম্য ডাক্তার আলমগীর বলেন, হাসপাতালে নেওয়া প্রয়োজন নাই আমি চিকিৎসা করতে পারবো এরকম আরো অনেক চিকিৎসা আমি করেছি। ডাক্তার তার দোকানে নিয়ে সেলাই করার পর কয়েকবার ড্রেসিং করে। তার কিছুদিন পর কাটা স্থানটি পঁচন ধরে ও প্রচুর ব্যাথা করে। ডাক্তারের কাছে নিয়ে আসলে, ডাক্তার হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেন। শান্তর পরিবার লালমোহন হাসপাতালে নিয়ে যায়। 



অভিযুক্ত গ্রাম্য ডাক্তার আলমগীর ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, আমি ছেলেটির কাটা হাত সেলাই করেছি এবং এরকম আরো অনেক রোগী ভালো হয়েছে। সেলাই করার পর ছেলেটির হাত পানিতে ভেজানোর কারনে এ সমস্যাটি দেখা দিয়েছে। বিশেষ ট্রেনিংপ্রাপ্ত বিষয়গুলোর সনদ আছে কিনা এমন প্রশ্ন এড়িয়ে যান তিনি।

 


চরফ্যাসন উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাক্তার শোভন বসাক বলেন, পল্লী চিকিৎসকের কোন ধরনের কাটা-ছেড়া করার অনুমতি নাই। তবে ভালো কোনো প্রতিষ্ঠান থেকে প্রশিক্ষনপ্রাপ্ত হলে ছোট-খাটো অপারেশন করতে পারবে। এ ব্যপারে ভুক্তভোগীর পরিবারের কাছ থেকে লিখিত অভিযোগ পেলে বিষয়টি খতিয়ে দেখবো।

নওগাঁর আত্রাইয়ের বান্দাইখাড়া বধ্যভূমির তিন মাথার মোড় যেন মৃত্যুর ফাঁদ

 নওগাঁর আত্রাইয়ের বান্দাইখাড়া বধ্যভূমির তিন মাথার মোড় যেন মৃত্যুর ফাঁদ

মোঃ ফিরোজ হোসাইন রাজশাহী ব্যুরো: নওগাঁর আত্রাইয়ের বান্দাইখাড়া বধ্যভূমির তিন  মাথার মোর যেন মৃত্যুর ফাঁদ ! ৭১ এর যুদ্ধে পাকিস্তানি মেলেটারির বর্বর হামলায় এক সঙ্গে প্রায়, ৪০ থেকে ৪৫ জন লোক কে ব্রাস ফায়ার করে হত্যা করে তারই ফলশ্র“তিতে বান্দাইখাড়া বাজারের দক্ষিন পূর্বো কর্ণারে গরে তোলা হয় শহিদদের স্মৃতি ফলক শহিদ মিনার, আত্রাই নদীর উপর গড়ে তোলা ব্রীজের রাস্তা বধ্যভূমির গা ঘেষে যাওয়ার কারনে বদ্যভুমির মেইন গেটের সামনে দিয়ে বাজারে ভিতরে রাস্তা চলে গিয়েছে, আর পশ্চিমের রাস্তা সেই গেইটের সামনে দিয়ে ব্রীজের উপর উঠেছে,যার কারনে এখানে তিন রাস্তার মোড় তৈরি হয়েছে। যখন ব্রীজের উপর থেকে গাড়ি আসে আবার বাজারের ভিতর থেকে গাড়ি আসে এবং পশ্চিম দিক হতে গাড়ি আসে, বধ্যভূমির যায়গার উপর রাস্তা ঘেষে ইটের ঘর থাকার কারনে সেখানে রাস্তা অনেকটা সরু হওয়ায় সব সময় গাড়ির জ্যাম লেগেই থাকে, আর ব্রীজের রাস্তা অত্যান্ত খাড়া হওয়ার কারনে প্রতি নিয়ত গ্রাড়ির ব্রেক ছিড়ে এই বধ্যভূমির প্রতি নিয়ত দূর্ঘটনা ঘটছে এ যেন এক মৃত্যুর ফাঁদ। প্রতিনিয়ত এই দূর্ঘটনা হওয়ার কারনে সাধারণ জণগন একটা আতঙ্ক নিয়ে রাস্তা চলা চল করতে হচ্ছে। এলাকার মানুষের দাবি এই বধ্যভূমির সুন্দর পরিবেশ তৈরি হোক এটাই সকলের কামনা।

নওগাঁর রাণীনগর উপজেলা পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের দায়িত্ব গ্রহন করলেন ফরিদা

 নওগাঁর রাণীনগর উপজেলা পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের দায়িত্ব গ্রহন করলেন ফরিদা

  



মোঃ ফিরোজ হোসাইন 

 রাজশাহী ব্যুরো


নওগাঁর রাণীনগর উপজেলা পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান হিসেবে আনুষ্ঠানিকভাবে দায়িত্বভার গ্রহন করেছেন মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ফরিদা বেগম।গতকাল সোমবার দুপুরে পরিষদে চেয়ারম্যানের কক্ষে আনুষ্ঠানিকতার মাধ্যমে চেয়ারে বসেন তিনি।জানাগেছে,নওগাঁ-০৬,(রাণীনগর-আত্রাই) আসনের এমপি ইসরাফিল আলম গত ২৭ জুলাই মারা গেলে এই আসন শুন্য ঘোষনা করে আগামী ১৭ অক্টোবর উপ-নির্বাচনের ভোট গ্রহনের দিন ধার্য করে নির্বাচন কমিশন। এই আসনে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন পেতে মনোনয়ন পত্র তোলেন রাণীনগর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন হেলাল। এরপর দলটি আনোয়ার হোসেন হেলালকে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনীত প্রার্থী হিসেবে চুরান্ত করে। প্রার্থীতা ঘোষনার পর গত ৮ সেপ্টেম্বর নিয়ম অনুযায়ী চেয়ারম্যান পদ থেকে পদত্যাগ করেন আনোয়ার হোসেন হেলাল। ওই দিনই সংশ্লিষ্ঠ মন্ত্রনালয় পদটি শুন্য ঘোষনা করে। এরপর গত ৯ সেপ্টেম্বর উপজেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান ফরিদা পারভিকে উপজেলা পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব দেয়া হলে সোমবার দুপুরে আনুষ্ঠানিকভাবে দায়িত্ব ভার গ্রহন করেন চেয়ারে বসেন তিনি। এ সময় সদ্য বিদায়ী চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগের মনোনীত এমপি পদপ্রার্থী আনোয়ার হোসেন হেলাল, ভাইস চেয়ারম্যান জারজিস হাসান মিঠু,উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো: আল মামুন,কালীগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম বাবলু মন্ডল,কাশিমপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মকলেছুর রহমান বাবু, গোনা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবুল হাসানাত খান হাসানসহ উপজেলা পরিষদের কর্মকর্তাবৃন্দ ও দলীয় নেতা কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো: আল মামুন জানান,পরবর্তি নির্বাচিত চেয়ারম্যান দায়িত্বভার গ্রহনের আগ পর্যন্ত ফরিদা পারভিন ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন।ফরিদা বেগমের জন্ম স্থান আত্রাই উপজেলার আহসান গঞ্জ ইউনিয়নের ঘোষপাড়া গ্রামে তার জন্ম পিতা মৃত আব্দুস ছামাদ সরকার মাতা মৃত সুফিয়া বেগম পাঁচ ভাই ও তিন বোন আট ভাই বোনের মধ্যে ৪র্থ সন্তান ফরিদা বেগম।বাবা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক ছিলেন।এবং আত্রাই উপজেলা শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক ছিলেন।আওয়ামী পরিবারে সন্তান ছিলেন ফরিদা বেগম। বিবাহ সূত্রে তিনি রানীনগর উপজেলার নাগরিক স্বামী মোঃ জনাব আলী সঙ্গে বিবাহ বন্ধনে আবব্ধ হন।তিনি তিন পুত্র সন্তানের মা এক ছেলে মৃত্যু বরন করেন বর্তমানে দুই সন্তান বড় ছেলে ফরহাদ হোসেন ছোট ছেলে রিপন। তার রাজনীতি জীবনে প্রথমে ইউপি মহিলা সদস্য নির্বাচনে বিপুল ভোটে জয়লাভ করেন।তারপর উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের সমর্থনে বিপুল ভোটে জয়লাভ করেন।শেষ নির্বাচন তিনি দলীয় প্রার্থী হিসাবে তিনি তার নিকট তম প্রতিদ্বন্দ্বী চেয়ে ৪৭৭২৩ ভোট বেশি পেয়ে নির্বাচিত হন।বর্তমানে তিনি রানীনগর উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রান ও সমাজ কল্যান বিষয়ক সম্পাদক নওগাঁ জেলার সফল নারী নেত্রী ফরিদা বেগম।রানীনগর উপজেলার জনগনের দোয়া চেয়েছেন তিনি।

মোংলা পোর্ট পৌরসভার নির্বাচনে হতে বাধা কোথায়?

 মোংলা পোর্ট পৌরসভার নির্বাচনে হতে বাধা কোথায়?


মোঃএরশাদ হোসেন রনি, মোংলা   

 মোংলা পোর্ট পৌরসভার সর্বশেষ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছিল  ২০১১ সালের ১৩ জানুয়ারী। সে নির্বাচনে বিজয়ী হয়েছিলেন মোংলা পৌর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক জুলফিকার আলী। এরপর থেকে বর্তমান সময় পর্যন্ত প্রায় ১০ বছর মেয়াদে তিনিই মেয়র হিসাবে পৌরসভার দায়িত্ব পালন করে আসছেন। এখনো পর্যন্ত এ পৌরসভায় আর কোন নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়নি। মোংলার সর্বত্র আলোচিত বিষয় এখন পৌরসভার নির্বাচন অনুষ্ঠানে বাধা কোথায়? সময় মতো নির্বাচন না হওয়ার জন্য মেয়রকেই দায়ী করছেন অনেকে । ক্ষমতায় বহাল থাকতে তার অনুগতদের দিয়েই উচ্চ আদালতে নির্বাচনের আগে রিট পিটিশন দাখিল করেছিলেন বলে অভিযোগ বর্তমান মেয়র জুলফিকারের বিরুদ্ধে। 



বাগেরহাট জেলা নির্বাচন কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, ২০১১ সালের ১৩ জানুয়ারী মোংলা পোর্ট পৌরসভার নির্বাচনে বিএনপি ও চার দলীয় সমর্থিত প্রার্থী এবং মোংলা পৌর বিএনপির সভাপতি জুলফিকার আলী ৭হাজার ৯শ ৫৮ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী শেখ আব্দুস সালাম। ২০১৫ সালের ডিসেম্বরে বর্তমান পৌর মেয়রের মেয়াদ শেষ হওয়ার পর নভেম্বরে তফসিল ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন। এরপর ওই বছর ১ ডিসেম্বর আদালতের আদেশে মোংলা পোর্ট পৌরসভার নিবার্চন স্থগিত করে নিবার্চন কমিশন। মোংলা পোট পৌরসভার ৪ নং ওয়ার্ড ও মোংলা উপজেলার বুড়িরডাঙ্গা ইউনিয়নের বিদ্যারবাওন ও ভাটারাবাদ এলাকার সীমানা নির্ধারণ ও তিন সহস্রাধিক ভোটার নিয়ে জটিলতা তৈরী হয়। এ এলাকার বাসিন্দাদের কাছ থেকে দীর্ঘ দিন যাবৎ পৌর কর আদায় করছে পৌর কর্তৃপক্ষ। কিন্তু ঐ এলাকাটি বুড়িরডাঙ্গা ইউনিয়নের অন্তর্ভুক্ত  হওয়ায় পৌর মেয়র ও জেলা প্রশাসকসহ নয় জনকে বিবাদী করে উচ্চ আদালতে রিট করেন বুড়িরডাঙ্গা ইউনিয়নের বাসিন্দা আবুল কালামসহ তিনজন । ওই বছর ১৮ নভেম্বর রুলের আদেশ দেন  হাইকোট । তৎকালীন নির্বাচন কমিশনের আইন শাখার উপ সচিব মহসিনুল হকের স্বাক্ষরিত চিঠিতে বলা হয়, হাইকোর্টের আদেশের পরিপ্রেক্ষিতে মোংলা পোর্ট পৌরসভার নির্বাচনের ক্ষেত্রে ঘোষিত তফসিল ছয় মাসের জন্য স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এরপর থেকে বর্তমান সময় পর্যন্ত মামলা ও প্রশাসনিক জটিলতায় মোংলা পোর্ট পৌরসভার নির্বাচন আর অনুষ্ঠিত হয়নি। মোংলা উপজেলার মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক সহকারী কমান্ডার ইস্রাফিল ইজারদার গত মঙ্গলবার বাগেরহাট প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে জানান, বিএনপির মেয়র জুলফিকার আলী তার ক্ষমতাকে চিরস্থায়ী করার জন্যে নিজ সমর্থকদের দিয়ে উচ্চ আদালতে মামলা করে নির্বাচন বন্ধ করে রেখেছিলেন। শুধু তাই নয়, চলতি বছর আবারো মামলা করে নির্বাচন বন্ধ করার ষড়যন্ত্র করছেন। সেজন্যে দ্রুত মোংলা পোর্ট পৌরসভায় প্রশাসক নিয়োগ  দিয়ে  দ্রুত নির্বাচনের দাবি জানান তিনি। এছাড়া তিনি মেয়রের বিভিন্ন অনিয়ম ও দুর্নীতির তদন্ত করার জন্যে সরকারের হস্তক্ষেপ কামনা করেন। সুশাসনের জন্যে নাগরিক-সুজন মোংলা শাখার সভাপতি শিক্ষাবিদ ফ্রান্সিস সুদান হালদার বলেন গণতান্ত্রিক ধারা অব্যাহত রাখতে এবং নতুন নেতৃত্ব সৃষ্টি করতে মোংলা পোর্ট পৌরসভার নির্বাচনের কোন বিকল্প নেই। তা না হলে মানুষের মধ্যে নির্বাচন নিয়ে উৎসাহে ভাটা পড়বে, সেই সাথে দেখা দিবে হতাশা। তিনি সব জটিলতা নিরসন করে দ্রুততম সময়ের মধ্যে মোংলা পোর্ট পৌরসভার নির্বাচন অনুষ্ঠানের দাবী জানান। এ বিষয়ে জানতে চাইলে মোংলা পোর্ট পৌরসভার মেয়র ও বিএনপির পৌর সম্পাদক জুলফিকার আলী বলেন, ‘পৌর এলাকার ৪ নং ওয়ার্ডের তিন সহস্রাধিক ভোটার ও সীমানা নির্ধারণ নিয়ে কয়েক বছরের বেশী সময় ধরে বিতর্ক চলে আসছে। ওই এলাকার ভোটাররা এ বিষয়ে মীমাংসার জন্যে উচ্চ আদালতে গিয়েছেন। আদালত একটি আদেশ দিয়েছে। নির্বাচন কমিশন নির্বাচন স্থগিত করেছে। এখানে আমার কি করার আছে? আর আমি নিজেও ও এই মামলার বিবাদী। তারা যদি আমার অনুসারী হতো তাহলে তো আমি এই মামলার বিবাদী বা আসামী হতাম না। তিনি আরো বলেন, আমি গনতান্ত্রিক ধারায় বিশ্বাস করি। আমিও চাই দ্রুত এ বিষয়ে নিষ্পত্তির মাধ্যমে নির্বাচন কমিশন নির্বাচন ঘোষণা করুক। বাগেরহাট জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ফারাজী বেনজির আহম্মেদ জানান, সীমানা সংক্রান্ত মামলার নিষ্পত্তি করার দায়িত্ব নির্বাচন কমিশনের নয়, স্থানীয় সরকার মন্ত্রনালয়ের কাজ। সীমানা নির্ধারণ শেষে গেজেট আকারে তা প্রকাশিত হলে তখন নির্বাচন কমিশন নির্বাচন অনুষ্ঠানের তফসিল ঘোষণা করতে পারবে। সেটি স্থানীয় সরকার মন্ত্রনালয় এখনো করেনি। তাই মোংলা পোর্ট পৌরসভার নির্বাচন দেয়া সম্ভব হচ্ছে না। বাগেরহাটের জেলা প্রশাসক মামুনর রশীদ প্রথম আলোকে বলেন, মোংলা বন্দর পৌরসভার সীমানা নির্ধারন নিয়ে বেশ কয়েক বছর যাবত মামলা চলে আসছে। ঊর্ধ্বতন কতৃপক্ষের  নির্দেশে আমরা মোংলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও সহকারী কমিশনার (ভুমি) কে এই বিষয়ে দায়িত্ব  দেই। তারা গনশুনানি করে সীমানা নির্ধারণ করার পর আমরা তা মন্ত্রনালয়ে পাঠাই। মন্ত্রনালয়ের অনুমোদন সাপেক্ষে তা গেজেট আকারে প্রকাশিত হবে।  কবে নাগাদ হতে পারে এ প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ জানেন।

পরিপূর্ণ নারীর অপূর্ণতা

পরিপূর্ণ নারীর অপূর্ণতা


আজহারুল ইসলাম সাদী 

___________________________

নারী আমাদের মা, নারী আমাদের বোন,

নারী আমাদের কন্যা, নারী আমাদের স্ত্রী।

সমাজ জীবনের প্রতিটি রন্ধে রন্ধে নারীর ব্যপক ভূমিকা অপরিসীম।

একথা আমরা কেউ অস্বিকার করতে পারিনা যে, সমাজে নারী ছাড়া পরিবার তন্ত্র অচল।

তাই আমাদের সবারই কতব্য নারীকে তার ন্যায্য অধিকার পাইয়ে দিতে সাহায্য করা।

তবে এর অর্থ এই নয় যে, অধিকারের নামে নারীকে রাস্তায় নামিয়ে আনতে বলা হচ্ছে।

সহনশীলতার সহিত নারীকে সমাজে তার গতিতে 

চলতে দিতে হবে।

যে, নারী বিপথগামী তাকে কেউ শত চেষ্টা করে ও সু-পথে ফেরাতে পারেনা এটা আমরা স্বীকার করতে বাধ্য।

প্রতিটি কর্মে নারী অংশ গ্রহন করে সফলতা  দেখিয়ে প্রমান দিয়েছে।

যে,তারাও পারে জয় করতে।

সমাজ জীবনে প্রায় প্রতিটি কর্মের ক্ষেত্রে অবশ্যই নারীর সক্রিয় অংশগ্রহণের প্রয়োজনীয়তা রয়েছে।

বিশ্লেষণ দেয়া যেতে পারে যেমন কোন

নারী অপরাধীর ক্ষেত্রে নারীর প্রয়োজন আছে, সে জন্য চাকরির ক্ষেত্রে নারী পুলিশের প্রয়োজন আছে। 

কর্মেক্ষেত্রের বিভিন্ন পর্যায়ে, নারীর প্রয়োজনীয়তা আমরা কখনো অস্বীকার করতে পারিনা?

তাই বলছি নারী পুুরুষ সবাই মিলে নারীর প্রতি সহনশীল হই।

তাদের নায্য অধিকার ফিরিয়ে, দেই।

তাদেরকে যেন, গৃহবন্দী না রাখি।


উদাহরণ স্বরূপ একজন নারীর সহনশীলতার পরিচয় দেয়া যেতে পারে। 


আর দশজন নারীর মত এক কর্মঠ দক্ষ এক নারীর নাম নাজমা বেগম।

সমাজের আর দশজন নারীর মত তার ও স্বপ্ন সাধনা ছিলো সুখি সংসার জীবনের।

সেই লক্ষে বুদ্ধি জ্ঞান হওয়ার পর থেকে সে বুঝতে শেখে, নারীর জীবন বিয়ের পর আবার নতুন করে শুরু করতে হয়, তাই ইসলামি শিক্ষায় গ্রামীণ রক্ষণশীল পরিবারে বেড়ে উঠা এই নাজমা বেগম

সকল প্রস্ততি নিতে থাকে।

একটা সময় তার বিয়ে হয়, সংসার জীবনের পরতে পরতে এমন ভাবে চলার চেষ্টা করেছে যে, তার কাজ কর্ম বা স্বামী সেবায় কেউ যেন খুট ধরতে না পারে।


কিন্ত কথায় বলে "অতি বড় ঘরনি না পায় বর"

সংসার জীবনের শুরুতেই তাকে কেন যেন নানা মিথ্যা অপবাদের স্বীকার হতে হয়।

একে একে জন্ম নেয় দুটি সন্তান তার পরে ও চেষ্টা করেছে অশান্তিময় সংসার টা যে কোন পর্যায়ে আকড়ে ধরার।

তার পরেও শত চেষ্টা করেও স্বামী ধনকে নিজের আয়ত্তে রাখতে পারেনি স্বামী তার হয়ে পড়ে পরকীয়ায় আসক্ত। 

এবং চলে যায় অনাত্র।


এক সময় হয়ে যায় বিচ্ছিন্ন। 

নতুন করে সুখি সংসারের স্বপ্ন দেখে, সুখি জীবনের স্বপ্ন দেখে আশান্বিত হয়, পুনরায় বিয়ের পিড়িতে পা রাখেন নাজমা।

কিন্তু বছর না গড়াতেই দেখা গেলো দ্বিতীয় স্বামী এবং তার পরিবার নাজমা কে নয় তার রুপ আর অর্থের জন্য বিয়ে করেছিলো।

সরলা মনের নারী নাজমার সাজানো জীবনের পরতে পরতে ভুল বুঝে কষ্ট দিয়ে নিঃসৃত করে দেয় তার অপরিসীম লালিত ভালোবাসাকে।


আমরা হই একে প্রতি অপরে সহনশীলতা। 

তবেই সুখি হবে নারী পুরুষের সুখি দাম্পত্য জীবন।

একজন নারীর মর্যাদা দিতে শিখি।

সমাজে শুধু নারীক ভোগের বস্তু হিসেবে দেখলে চলবেনা?

বুঝতে হবে তার মন ও আশা আকাঙ্খা।  

খুলনা শিশু ধর্ষণের দায়ে আটক পুলিশ কনস্টেবলের বিরুদ্ধে মামলা

 খুলনা শিশু ধর্ষণের দায়ে আটক পুলিশ কনস্টেবলের বিরুদ্ধে মামলা






খোন্দকার আব্দুল্লাহ বাশার। 

খুলনা ব্যুরো প্রধান 



 


খুলনা জেলার তেরখাদা উপজেলায় চতুর্থ শ্রেণির এক ছাত্রী (৯) ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। আজ সোমবার (১৪ সেপ্টেম্বর) বেলা ১১টার দিকে উপজেলার মধুপুর এলাকায় এঘটনা ঘটে। ওই শিশু বর্তমানে খুমেক হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসি) চিকিৎসাধীন। এঘটনায় শিশুটির বাবা বাদী হয়ে মামলা করেন। এমামলায় পুলিশ উপজেলার মধুপুর ইউনিয়নের মোকামপুর গ্রামের রেজাউল ইসলামকে (২২) গ্রেপ্তার করেছে। রেজাউল ইসলাম নাটোর পুলিশ লাইনসে পুলিশ সদস্য হিসেবে কর্মরত।


এ নিয়ে গত এক সপ্তাহের ব্যবধানে খুলনার তিন উপজেলায় চারটি ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেল। এরমধ্যে খালিশপুরে একটি, ডুমুরিয়ায় দু’টি ও তেরখাদায় একটি ধর্ষণের ঘটনা ঘটে। গত মঙ্গলবার খালিশপুরে এক কিশোরীকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে গণধর্ষণের অভিযোগে তিনজনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। ডুমুরিয়া উপজেলায় এক তরুণীকে গণধর্ষণের অভিযোগে গত বুধবার থানায় মামলা হলে পুলিশ দুজনকে গ্রেপ্তার করে। সর্বশেষ, তেরখাদায় শিশুকে ধর্ষণের ঘটনায় পুলিশ সদস্য গ্রেপ্তার হলেন।


তেরখাদার ওই শিশুর বাবা জানিয়েছেন, রেজাউল পুলিশের একজন কনস্টেবল। নাটোরে চাকরি করেন। বছর তিনেক হয়েছে চাকরি পেয়েছেন। এখন ছুটিতে বাড়িতে এসেছেন। তাঁর মেয়ে রেজাউলের বাড়ির পাশের ঘেরের পাড়ে বেলা ১১টার দিকে কদম ফুল পাড়তে যায়। সে সময় ফুল পাড়তে সহায়তার কথা জানান রেজাউল। পরে তিনি ফুসলিয়ে মেয়েটিকে বাড়িতে নিয়ে ধর্ষণ করেন। পরে মেয়ে বাড়িতে এসে তার মাকে সব ঘটনা খুলে বলে।


তেরখাদা থানার অফিসার ইনচার্জ (চলতি) স্বপন কুমার রায় জানান, অভিযুক্ত রেজাউলকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তিনি নাটোর পুলিশ লাইনসে পুলিশ সদস্য হিসেবে কর্মরত। ওই শিশুকে খুমেক হাসপাতালের ওসিসিতে ভর্তি করা হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে আরও তদন্ত চলছে।


খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওসিসি’র সমন্বয়ক চিকিৎসক অঞ্জন কুমার চক্রবর্তী বলেন, শিশুটিকে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। তবে এখনো তার রক্তক্ষরণ হচ্ছে। শিশুটি শঙ্কামুক্ত নয়।

যশোর শহরের মধ্যে আবারো বাংলা ও চোলাইমদ বেচাকেনা শুরু

 যশোর শহরের মধ্যে আবারো বাংলা ও চোলাইমদ বেচাকেনা শুরু




সুমন হোসেন, যশোর জেলা প্রতিনিধি। 

যশোর শহরের মধ্যে আবারো অবৈধভাবে বাংলা ও চোলাইমদ বেচাকেনা শুরু হয়েছে। গত মার্চ মাসে অবৈধ তৈরীকৃত বিষাক্ত বাংলা ও চোলাইমদ পান করে যশোর এলাকায় ১১ জন মৃত্যুর ঘটনা গোটা যশোর বাসীর মধ্যে চাঞ্চল্য সৃষ্টি করলেও আবারো চোলাইমদ বেচাকেনা শুরু হওয়ায় অনেক পরিবারের মধ্যে আতংক শুরু হয়েছে।

নির্ভরযোগ্য সূত্রগুলো বলেছেন,গত মার্চ মাসে যশোর শহরের মাড়–য়াড়ী মন্দির সংলগ্ন পতিতালয়ের সামনে ও বাবু বাজারসহ শহরের বেশ কয়েকটি স্থানে অবৈধবাবে বিষাক্ত চোলাইমদ সেবন করে যশোর শহরের গরীবশাহ মাজারের পাশের্ মনি,ঘোপ নওয়াপাড়া রোডের বাসিন্দা সাবুর,ঝুমঝুমপুর এলাকার ফজলুর রহমান চুক্কিসহ জেলায় কমবেশী ১১ জন পর্যায়ক্রমে মারা যায়। এ ঘটনায় চোলাইমদ সেবন করে মৃত্যুর ঘটনায় নিহতর পরিবারের পক্ষ থেকে দু’টি ও পুলিশ বাদী হয়ে মামলা দায়ের করলে পুলিশ সেই সময় অভিযান চালিয়ে অবৈধভাবে চোলাইমদ বেচাকেনার অভিযোগে মাহমুদুল হাসান,কৃষ্ণ,সাজুসহ কমবেশী বেশ কয়েকজনকে গ্রেফতার করে আদালতে সোপর্দ করে। বর্তমানে উক্ত মামলাগুলি চার্জশীট দাখিলের অপেক্ষায় রয়েছে। চোলাইমদ বেচাকেনার অভিযোগে পুলিশের হাতে যারা সেই সময় গ্রেফতার হয়েছিল। তারা আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি প্রদান করেন। জবানবন্দিতে গ্রেফতারকৃতরা যাদের নাম বলেছেন তাদের মধ্যে কালো মিন্টু,ইছালী গ্রামের জাকির ছোট মহাসিন,আনারুল কারেন্ট মিস্ত্রী মনিরসহ অনেকে থেকে যায় ধরা ছোয়ার বাইরে। বিগত মার্চ থেকে চোলাইমদ বেচাকেনা একেবারে বন্ধ না হলেও শহরের হরিজন পল্লী পুরাতন পৌরসভার সামনে ও শহরের রেলষ্টেশনের অদূরে রেলরোডস্থ এলাকায় সুইপার কলোনীতে অবাধে চোলাই মদ বেচাকেনা চলতে থাকে। খোদ শহরের মাড়–য়াড়ী মন্দির সংলগ্ন পতিতালয়ের সামনে থেকে চোলাইমদের দোকান থেকে চোলাইমদ কিনে সেবন করার অভিযোগে শহরে গড়ে ওঠা চোলাইমদক বেচাকেনা সিন্ডিকেটের উপর চলে অভিযান। অভিযানে কিছু সংখ্যক সদস্য ধরা পড়ে। বাকী অংশ বিভিন্ন জেলায় ও আত্মগোপন করে থাকায় তারা থেকে যায় ধরা ছোয়ার বাইরে। বাজারের উক্ত রোডের ব্যবসায়ীরা নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানিয়েছেন, ইছালী গ্রামের জাকিরের সহযোগী ও মাদক মামলার আসামী সাবেক মাদক বিক্রেতা ফারুকের ভাইপো ছোট মহাসিন, বাবু বাজার হাটখোলা রোডস্থ পলাশ হোটেলের পাশের ভোলাসাহা আবাসিক হোটেলের সামনে কারেন্ট মিন্ত্রী মনি ,বাবু বাজার ২নং গলির সুমীর স্বামী আনারুল, উক্ত ২নং গলির গেটের সামনে পান দোকান পুলিশের কথিত সোর্স সুমন ওরফে বেকারী সুমন, মাড়–য়াড়ী মন্দির সংলগ্ন পতিতালয়ের ২ নং গলির সর্দানী বিনার ভাই মনির হোসেন মায়ের দোয়া পান সিগারেটের দোকানের আড়ালে ডোমদে মাধ্যমে উত্তোলন করে বাংলা ও চোলাইমদ বিক্রি করে। সূত্রগুলো জানিয়েছেন উক্ত দোকানে সব সময় নারীদের নিয়ে আড্ডা করে। পতিতা সর্র্দানী বিনার ভয়ে কেউ মুখ খুলতে পারেনা। সূত্রগুলো বলেছেন, মায়ের দোয়া দোকান্দার মনিরের সহযোগী হিজড়া হাসান অবৈধ মদ আনা নেওয়াসহ নানা অসামাজিক কার্যকলাপ করে থাকে। সূত্রগুলো বলেছে,পথচারীরা পতিতা সর্দানী বিনার অত্যাচারে ওই সড়কে চলাফেরা করতে পারেনা। করোনা ভাইরাসে সামাজিক দূরত্ব না মেনে পতিতা সর্দার্নী হাটখোলা রোডস্থ ও মাড়–য়াড়ী মন্দির সংলগ্ন পতিতালয়ের সামনে অবস্থান নেওয়ায় ওই সড়কে ব্যবসায়ী চলাচলরত পথচারীরাঅতিষ্ট হয়ে পড়েছে। এ ব্যাপারে পুলিশের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষসহ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করা হয়েছে।

রুদ্র অয়ন এর দু'টো অনু কবিতা

রুদ্র অয়ন এর দু'টো অনু কবিতা

  



অপ্রত্যাশিত ঝড়

তোমার এক চোখেতে মেঘ
আরেক চোখে ছিলো ঝড়! 
আমি  বৃষ্টির  প্রত্যাশায়
জেগে ছিলেম রাতভর।


নিরব কষ্ট

হৃদয় যেনো অথৈ সাগর
উথাল পাথাল ওঠে ঢেউ, 
ঢেউয়ের তোড়ে ভাঙে মন
সে ব্যথা বোঝেনা আর কেউ ।


- রুদ্র অয়ন
ঢাকা, বাংলাদেশ    

ঐক্যবদ্ধ হচ্ছে কিন্ডারগার্টেন সংগঠনগুলো

 ঐক্যবদ্ধ হচ্ছে কিন্ডারগার্টেন সংগঠনগুলো





প্রেস বিজ্ঞপ্তিঃ করোনা মহামারিতে বিপর্যস্ত কিন্ডারগার্টেন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও শিক্ষকদের জন্য যথাক্রমে প্রণোদনা ও আর্থিক সহায়তা বরাদ্দের দাবী আদায়ে কিন্ডারগার্টেন এসোসিয়েশনগুলো ঐক্যবদ্ধ হওয়ার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। এই লক্ষ্যে আগামীকাল মঙ্গলবার সকাল ১০ টায় ্প্রায় ২০ টি সংগঠনের এক যৌথ সভা তোপখানা রোডস্থ শিশু কল্যাণ পরিষদ কনফারেন্স হলে অনুষ্ঠিত হবে। 

এই যৌথ সভার সমন্বয়কারী সাংবাদিক মোহাম্মদ আবদুল অদুদ জানান, দেশের সকল বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, বিশেষ করে কিন্ডারগার্টেন স্কুলগুলোকে প্রণোদনা বা বিনা সুদে ঋণ ও প্রতিষ্ঠানগুলোতে কর্মরত শিক্ষক-শিক্ষিকা-কর্মচারিদের এককালিন আর্থিক সহায়তা প্রদানের দাবী আদায়ে আমরা ঐক্যবদ্ধ। আমরা আশা করছি, দেশব্যাপী সক্রিয় প্রায় ২০টি সংগঠনের প্রতিনিধিগণ এই যৌথ সভায় উপস্থিত থাকবেন এবং অধিকার আদায়ে সুচিন্তিত বক্তব্য রাখবেন। তিনি বলেন, আমরা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, মাননীয় শিক্ষামন্ত্রী,  মাননীয় প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী, শিক্ষা সচিব মহোদয় এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব মহোদয়ের দৃষ্টি আকর্ষণ করে কিন্ডারগার্টেন স্কুল ও শিক্ষকদের যৌক্তিক দাবীগুলো তুলে ধরবো। 

তিনি আরো জানান, গণমাধ্যমের জন্য বেলা ১ টায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে নেতৃবৃন্দ উপস্থিত থেকে তাদের সিদ্ধান্তের আলোকে বক্তব্য উপস্থাপন করবেন।  
                                
বার্তা প্রেরক

( এম এ মান্নান মনির )
শিক্ষা সচিব, স্বাধীনতা শিক্ষক পরিষদ, ০১৯৮২৭৯৯৯৭৮
বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল ইসলাম খন্দকার ০১৬৭৬৬৪৮২৭১
মোহাম্মদ আবদুল অদুদ (সমন্বয়কারী) ০১৯৯১৬৫৭০৭১

নওগাঁর বদলগাছিতে ফেন্সিডিল সহ আটক -১

নওগাঁর বদলগাছিতে ফেন্সিডিল সহ আটক -১



রহমতুল্লাহ বদলগাছী নওগাঁ:নওগাঁ জেলা বদলগাছী উপজেলা সদরে ১৫ বতল আমদানি নিষিদ্ধ ফেন্সিডিলসহ এক মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেন বদলগাছী থানা পুলিশ।

এ জেন কাল মেঘাচ্ছন্ন  দম বন্ধ করা এক হৃদয় বিদারক ঘটনা তবে কি  নেশার অবসান ঘটছে না অতিষ্ঠ এলাকাবাসী ও পুলিশ প্রশাসন।

ঘটনা সুত্রে, জানাযায় বদলগাছী উপজেলা পরিষদের সদরে মোহাম্মদ হারুন নামে এক মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছেন পুলিশ


নওগাঁ জেলার সুযোগ্য পুলিশ সুপার প্রকৌশলী জনাব মোঃ আব্দুল মান্নান বিপিএম (সেবা) মহোদয়ের নির্দেশক্রমে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (মহাদেবপুর সার্কেল) জনাব আবু সালেহ মোহাম্মদ আশরাফুল আলমের নেতৃত্বে অফিসার ইনচার্জ জনাব মোহাম্মদ চৌধুরীর জুবায়ের আহমেদ বদলগাছী থানা নওগাঁ এর সার্বিক তত্ত্বাবধায়নে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে 

১৪ ই সেপ্টেম্বর এসআই মিথুন ও এসআই হারুন  বিশেষ অভিযান চালিয়ে বদলগাছী সদর এলাকা হতে আসামিকে গ্রেপ্তার করেন।


এ মামলায় আসামি কে নিয়মিত মামলা রুজু করেন বদলগাছী থানা পুলিশ।

সৌদি আরবে অবস্থিতদের জন্য সীমিত আকারে ওমরাহ হজ চালু করার সিদ্ধান্ত

 সৌদি আরবে অবস্থিতদের জন্য সীমিত আকারে ওমরাহ হজ চালু করার সিদ্ধান্ত





মোহাম্মদ বেলাল উদ্দিন সিনিয়র স্টাফ রিপোর্টার:শীঘ্রই সৌদি আরবে সীমিত পরিসরে ওমরাহ হজ চালু করে দেয়া হবে। শুধুমাত্র সৌদি আরবে অবস্থানরত স্থানীয়দের ওমরাহ হজ পালনের সুযোগ দেয়া হবে বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছে সৌদি সরকার।


আগামী ১৫ সেপ্টেম্বর থেকে প্রথম দফায় সৌদি আরবে আন্তর্জাতিক ফ্লাইট চালু করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে অভ্যান্তরীন মন্ত্রণালয়, এবং সৌদি আরবে আন্তর্জাতিক ভ্রমনের সকল প্রকার নিষেধাজ্ঞা আগামী ১ জানুয়ারি, ২০২১ থেকে সম্পূর্ণ তুলে নেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। করোনাভাইরাসের বর্তমান পরিস্থিতির উন্নয়ন এর উপর ভিত্তি করে সৌদি আরবে ওমরাহ হজ পুনরায় চালু করার জন্য একটি পরিকল্পনা নেয়া হবে এবং ওমরাহ হজ আবার চালু করে দেয়া হবে বলে জানিয়েছে মন্ত্রণালয় এর একটি বিশ্বস্ত সূত্র।


তথ্য অনুযায়ী, প্রথম দফায় সকল স্বাস্থ্যবিধি ও শর্ত এবং নিয়মাবলী মেনে সৌদি আরবে অবস্থানরত স্থানীয়রা ওমরাহ হজ করার সুযোগ পাবেন। হজের বিধিগুলো পালন করবার পূর্বে প্রত্যেক হাজিকে সাথে করে করোনা নেগেটিভ সার্টিফিকেট বহন করতে হবে। সৌদি আরবে অবস্থানরত স্থানীয় সৌদি নাগরিক এবং প্রবাসী, সকলেই অনুমতি পাওয়া সাপেক্ষে ওমরাহ হজ পালন করতে পারবেন।


ওমরাহ হজে স্থানীয়দের কি কি নিয়ম পালন করতে হবে সেগুলোর সাথে ওমরাহ হজ চালুর তারিখও ঘোষণা দেয়া হবে বলে জানিয়েছে সৌদি আরবের হজ এবং ওমরাহ মন্ত্রণালয়।


এছাড়াও একটি সূত্র জানিয়েছে, মন্ত্রণালয় এর পক্ষ থেকে একটি মোবাইল এপ লঞ্চ করা হবে, যাতে ওমরাহ হাজিদের প্রত্যেকের হজের বিধি ও আচার পালনের সময় নির্দিষ্ট করা হবে এবং জানিয়ে দেয়া হবে। এছাড়াও শর্তসাপেক্ষে প্রত্যেক হাজিকে হজ এর পারমিট প্রদান করা হবে, এবং পারমিট পাওয়া সাপেক্ষেই নির্ধারিত সময়ে হাজিরা নিজ নিজ হজ এর আনুষ্ঠানিকতা পালন করতে পারবেন

কারা ১৫ সেপ্টেম্বর থেকে সৌদি আরবে প্রবেশের অনুমতি পাচ্ছেন?

 কারা ১৫ সেপ্টেম্বর থেকে সৌদি আরবে প্রবেশের অনুমতি পাচ্ছেন?



মোহাম্মদ বেলাল উদ্দিন সিনিয়র স্টাফ রিপোর্টার 


প্রবাসীসহ নির্দিষ্ট কিছু মানুষই ১৫ সেপ্টেম্বর থেকে সৌদি আরব প্রবেশ বা সৌদি আরব ত্যাগ করতে পারবেন।  আগামী ১ জানুয়ারি, ২০২১ থেকে সৌদি আরবে আন্তর্জাতিক ভ্রমণে সকল নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়ার সিদ্ধান্ত জানিয়েছে সৌদি সরকার।


প্রথম দফায় আগামী ১৫ সেপ্টেম্বর থেকে সৌদি আরবে আন্তর্জাতিক ফ্লাইট চালু করতে যাচ্ছে সরকার। তবে শুধুমাত্র নির্দিষ্ট শ্রেণীর যাত্রীর জন্যই প্রথম দফায় আন্তর্জাতিক ফ্লাইট চালু হবে। আগামী ডিসেম্বর মাস পর্যন্ত করোনা পরিস্থিতি যাচাই করে দেখা হবে বলে জানিয়েছে মন্ত্রণালয়।



আগামী ১৫ সেপ্টেম্বর থেকে মূলত প্রবাসী এবং বিশেষ সৌদি নাগরিকদের জন্য আন্তর্জাতিক ভ্রমণ প্রথম দফায় চালু করা হচ্ছে।  প্রবাসীদের মধ্যে যাদের কাছে মেয়াদসহ এক্সিট, রিএন্ট্রি ভিসা, ওয়ার্ক ভিসা, রেসিডেন্সি পারমিট (ইকামা), এবং ভিজিট ভিসা রয়েছে, তারা সৌদি আরবে প্রবেশ করতে পারবেন বা সৌদি আরব ত্যাগ করতে পারবেন। উল্লেখ্য , যেসকল প্রবাসীর বিগত ৩১ আগস্ট পর্যন্ত উপরে উল্লেখিত ভিসাগুলোর মেয়াদ ছিলো, তাদেরকে ইতিমধ্যেই অটোমেটিকভাবে আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ভিসার মেয়াদ বৃদ্ধি করে দেয়া হয়েছে।


এছাড়াও বিশেষ সৌদি নাগরিকদেরও প্রথম দফায় আন্তর্জাতিক ভ্রমণ করার অনুমতি দেয়া হয়েছে। এর মাঝে অন্তর্গত হলেন, সরকারি কর্মচারী, সিভিলিয়ান এবং মিলিটারি সদস্য – যারা অফিশিয়াল ডিউটিতে নিযুক্ত আছেন, অসুস্থ রোগী, সৌদি আরবের বাইরে অন্যান্য দেশে স্থায়ী চাকুরিতে থাকা কর্মচারীরা, বাইরের দেশের স্কলারশীপ পাওয়া শিক্ষার্থীরা, এবং যাদের আত্মীয় দেশের বাইরে অবস্থান করছেন তারা পরিবারের কারো মৃত্যুর ক্ষেত্রে সৌদি আরবে প্রবেশ বা ত্যাগ করতে পারবেন।


এছাড়াও জিসিসি এর অন্তর্ভুক্ত দেশগুলোর নাগরিকেরা প্রয়োজন অনুসারে সৌদি আরবে প্রবেশ বা ত্যাগ করতে পারবেন।


প্রবাসীদের সৌদি আরব প্রবেশ বা ত্যাগ এর ক্ষেত্রে ফ্লাইটের তারিখের পেছনের ৪৮ ঘন্টার মধ্যে করোণাভাইরাসের টেস্ট করে নেগেটিভ হতে হবে এবং সেই টেস্ট এর রেজাল্ট সাথে নিয়ে সৌদি আরবে প্রবেশ করতে হবে।


ওমরাহ হজ চালু করে দেয়া হবে কিনা এবং ওমরাহ হাজীরা সৌদি আরবে প্রবেশ করতে পারবেন কিনা এই প্রশ্নের উত্তরে মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, ওমরাহ হজ চালু করে দেয়ার ব্যাপারে এবং ওমরাহ ফ্লাইট চালুর ব্যাপারে একটি পরিকল্পনা তৈরী করছেন তারা, এবং শীঘ্রই এই পরিকল্পনা বাস্তবায়নের ব্যাপারে ঘোষণা দেয়া হবে।

হিলি স্থলবন্দর দিয়ে ভারত পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ

হিলি স্থলবন্দর দিয়ে ভারত পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ




কৌশিক চৌধরি, হিলি প্রতিনিধিঃ-আজ সোমবার সকাল থেকে হিলিসহ দেশের বিভিন্ন স্থলবন্দর দিয়ে বাংলাদেশে পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ রেখেছে ভারতের পেয়াজ রপ্তানি কারকরা। ফলে সকাল থেকে হিলি স্থলবন্দর দিয়ে ভারত থেকে কোন পেঁয়াজ বোঝায় ট্রাক দেশে প্রবেশ করেনি।


হিলি স্থলবন্দরের পেয়াজ আমদানি কারক নাজমুল  চৌধুরী জানান, আজ দুপুরে ভারতের দিল্লিতে পেঁয়াজ রপ্তানি বিষয়ে আলোচনা বসে সে দেশের কর্মকর্তারা। ভারতের বাজারে পেয়াজের দাম বেড়ে যাওয়ায় ভারতীয় কর্তৃপক্ষ বাংলাদেশে পেঁয়াজ রপ্তানি না করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। ফলে হিলি স্থলবন্দরসহ দেশের সকল স্থলবন্দর দিয়ে বাংলাদেশে পেঁয়াজ আমদানি বন্ধ রয়েছে। 


হিলি স্থলবন্দর আমদানি-রপ্তািন কারক গ্রুপের সভাপতি হারুন উর রশিদ হারুন জানান হঠাৎ করে ভারতীয় কর্তৃপক্ষ বাংলাদেশে পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ করে দেয়ায় বিপাকে পড়েছে বন্দরের পেঁয়াজ আমদানি কারকরা। সীমান্তের ওপারে প্রায় শতাধিক পেঁয়াজ বোঝায় ট্রাক বাংলাদেশে প্রবেশের অপেক্ষায় আটকা পড়ে আছে। 


অন্যদিকে পেঁয়াজ আমদানির লক্ষ্যে আগে থেকে এলসি গুলোর ভবিষ্যত কি হবে তা নিয়ে শঙ্খায় পড়েছে বন্দরের পেঁয়াজ আমদানিকারকরা। 

মাগুরার শ্রীপুরে গাজার গাছ সহ রোপনকারী যুবক আটক

মাগুরার শ্রীপুরে গাজার গাছ সহ রোপনকারী যুবক আটক




মো:রাসেল হোসেন, শ্রীপুর(মাগুরা)প্রতিনিধি


মাগুরার শ্রীপুরে গাঁজার গাছসহ সুজাত জোয়ারদ্দার (২৩) নামে এক যুবককে আটক করেছে পুলিশ। আটককৃত যুবক রাজাপুর গ্রামের ফিরোজ জোয়াদ্দারের পুত্র ।শ্রীপুর থানা পুলিশ জানায়, রবিবার রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারে যে, রাজাপুরের চরপাড়ার বাসিন্দা সুজাত জোয়ারদ্দার (২৩) বসতবাড়ির গোয়ালঘরের দক্ষিণ পার্শ্বে গাঁজার গাছ রোপন করে যত্নে লালণ-পালন করে বড় করে তুলেছে এবং কিছুদিনের মধ্যেই বিক্রির উপযোগি হবে ।



এ সংবাদের ভিত্তিতে শ্রীপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আলী আহমেদ মাসুদ এর নেতৃত্বে এসআই প্রনয় কুমার,এএসআই মিজবা উদ্দিন কিছু পুলিশ সদস্য নিয়ে ওইদিন গভীর রাতে  উক্ত স্থানে অভিযান পরিচালনা করে বড় একটি গাঁজার গাছসহ বাড়ির মালিক সুজাত জোয়ারদ্দারকে আটক করতে সক্ষম হন ।

এ বিষয়ে শ্রীপুর থানার অফিসার ইনচার্জ আলী আহমেদ মাসুদ বলেন, আটককৃত যুবক  নিজ বসতঘরের পিছনে গাঁজার গাছ রোপণ করেছিল । পুলিশ সংবাদ পেয়ে গাঁজার গাছসহ তাকে আটক করেছে। এ ব্যাপারে তার বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইণে একটি নিয়মিত মামলা হয়েছে ।

নগরকান্দায় মানবতার ফেরিওয়ালা ওসি সোহেল রানা

নগরকান্দায় মানবতার ফেরিওয়ালা ওসি সোহেল রানা

 



ফরিদপুরঃ ফরিদপুরের নগরকান্দা উপজেলায় নগরকান্দা থানার অফিসার ইনচার্জ শেখ মোঃ সোহেল রানা পক্ষ থেকে  আজ ১৩ সেপ্টেম্বর রোজঃ রবিবার বিকালে থানা প্রাঙ্গনে বিভিন্ন দুস্থ অসহায় প্রতিবন্ধীদের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়,

খাদ্য সামগ্রী মধ্যে রয়েছে চাউল,ডাল,আলু,সোয়াবিন তেল, লবণ ইত্যাদি। 

করোনার মহামারী মধ্যে বিভিন্ন ভাবে খাদ্য সহায়তা ও মানব কল্যাণে কাজ করে যাচ্ছেন নগরকান্দা থানা ওসি সোহেল রানা, তিনি নগরকান্দা থানায় আফিসার ইনচার্জ হিসেবে যোগদানের পর উন্নত হচ্ছে নগরকান্দা উপজেলাবাসীর জিবন যাত্রার মান।সর্বদা আইন শৃঙ্খলা রক্ষা করতে বদ্ধপরিকর,করোনা মাহামারীর শুরু থেকেই করোন মোকাবেলায় নিরলস ভাবে করে যাচ্ছেন করোনা যোদ্ধা ওসি সোহেল রানা, করোনার বিরুদ্ধে যোদ্ধো করতে গিয়ে নিজেই কিছু দিন আগে করোনায় আক্রান্ত হয়েছিল এই যোদ্ধা। তার বলিষ্ঠ নেতৃত্বে নগরকান্দা থানা পুলিশ প্রতিনিয়ত বিরামহীন ভাবে কাজ করে যাচ্ছে। নগরকান্দা থানায় অনিয়ম-দূর্নীতি, চুরি-ডাকাতির,মারামারি, মাদক, ধর্ষণ, জুয়া ইত্যাদি অপরাধ আগের চেয়ে অনেকাংশে কমে গেছে।