চতুল ইউপিতে নৌকার কান্ডারী হতে চান সুবেদার আফতাব

চতুল ইউপিতে নৌকার কান্ডারী হতে চান সুবেদার আফতাব


কানাইঘাট উপজেলা প্রতিনিধিঃ১৯৭১ সালের সম্মুখ যুদ্ধা, বর্ষীয়ান রাজনীতিবিদ, সমাজ সেবক ও শিক্ষানূরাগী বীর মুক্তিযোদ্ধা  সুবেদার আফতাব উদ্দীন আগামী ইউপি নির্বাচনে নৌকা প্রতিক নিয়ে চতুল ইউপির কান্ডারী হতে চান। 


সাধারণ মানুষের ধারনা ও চাহিদাও তেমনটাই প্রায় তিনি ৫ নং বড়চতুল ইউপি আওয়ামীলীগ এর সিনিয়র সহ-সভাপতি, কানাইঘাট উপজেলা আওয়ামীলীগ মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক ও সাবেক সিলেট জেলা  মুক্তিযোদ্ধা সহকারী কামান্ডার  এবং দূর্গাপুর স্কুল & কলেজ এর উপদেষ্টা হিসাবে কাজ করে আসছেন।

আনাবিয়া মামনীর শুভ জন্মদিন

 আনাবিয়া মামনীর শুভ জন্মদিন

 


আনাবিয়া মামনীর শুভ জন্মদিন।যশোর জেলার চৌগাছা উপজেলার দশপাখিয়া গ্রামের বিপ্লব ও স্বপ্নার কোল জুড়ে ২০১৯ সালের ২১ ডিসেম্বরে পৃথিবীর বুকে পদার্পণ করে আমাদের আনাবিয়া মামনী। তার জন্মদিনে তার জন্য শুভকামনা ও অভিনন্দন  রইল। 

শুভ কামনায় 

শিরিন শিলা 

ফুফু (আনাবিয়ার) 

বগুড়ায় আ.লীগের অস্বচ্ছল নেতাকর্মীদের অর্থ সহায়তা প্রদান

বগুড়ায় আ.লীগের অস্বচ্ছল নেতাকর্মীদের অর্থ সহায়তা প্রদান

মোঃ সবুজ মিয়া বগুড়া প্রতিনিধিঃ বগুড়ায় আওয়ামী লীগের অস্বচ্ছল নেতাকর্মীদের অর্থ সহায়তা প্রদান করা হয়েছে। বগুড়া সদরের লাহিড়ীপাড়া ইউনিয়নের পীরগাছা বন্দরে স্থানীয় আওয়ামী লীগ অফিসে মমতাজ মাসুমা ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে অস্বচ্ছলদের অর্থ সহায়তা প্রদান করা হয়।

ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও ইউপি চেয়ারম্যান প্রার্থী আজহারুল হান্নান রিপুর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে অর্থ সহায়তা প্রদান করেন মমতাজ মাসুমা ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা, বগুড়া চেম্বার অব কমার্সের সভাপতি মাসুদুর রহমান মিলন সিআইপি।

বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আবু সুফিয়ান সফিক।

ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জহুরুল ইসলাম উজ্জলের পরিচালনায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন জেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম সম্পাদক তাকবির, আরাফাত, শাহিন, আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুল আজিজসহ সকল ওয়ার্ড ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের নেতা কর্মী বৃন্দ।

সিরাজগঞ্জে বাল্য বিয়ের অপরাধে অর্থদন্ড

সিরাজগঞ্জে বাল্য বিয়ের অপরাধে অর্থদন্ড

মাসুদ রানা সিরাজগঞ্জঃ জেলাপ্রতিনিধিঃসোমবার (২১ ডিসেম্বর) রাতে সিরাজগঞ্জ পৌর  এলাকার গয়লা গ্রামে অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থীর বাল্য বিয়ের অপরাধে অর্থদন্ড দেওয়া হয়। এবিষয়ে সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলার সহকারী কমিশনার ( ভূমি) মোহাম্মদ রহমত উল্লাহ বলেন একটি গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বাল্যবিয়ে    হচ্ছে সংবাদ পেয়ে কনের বাসায় অভিযান পরিচালনা করা হয়। এসময় কনের বাড়িতে উপস্থিত হয়ে দেখা যায় বিয়ের আয়োজন চলছে। এসময় উপস্থিত কনের বাবার  নিকট থেকে প্রাপ্তবয়স্ক হওয়ার পূর্বে বিয়ে দিবেন না মর্মে মুচলেকা নেয়া হয়,এবং বর ও কনের বাবাকে মোট ১০,০০০/- ( দশ হাজার) টাকা অর্থদণ্ড দেয়া হয়। উক্ত অভিযানে উপস্থিত ছিলেন সিরাজগঞ্জ সদর থানা পুলিশসহ উপজেলা ভূমি অফিসের স্টাফগণ।

খুলনায় ইট ভাটায় মোবাইল কোর্টের অভিযান

খুলনায় ইট ভাটায় মোবাইল কোর্টের অভিযান




তুহিন রানা (আব্রাহাম) ; খুলনা নগর প্রতিনিধিঃ
সুযোগ্য জেলা প্রশাসক ও বিজ্ঞ জেলা ম্যাজিস্ট্রেট, খুলনা জনাব মোহাম্মদ হেলাল হোসেন পিএএ মহোদয়ের নির্দেশে এবং বিজ্ঞ অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট, খুলনা জনাব মোঃ ইউসুপ আলী মহোদয়ের তত্ত্বাবধানে আজ রূপসা উপজেলায় মোবাইল কোর্ট পরিচালিত হয়। রূপসা উপজেলার আঠারোবাকী নদীর ঢাল হতে অবৈধভাবে মাটি কেটে অপসারণের অপরাধে 'বালুমহাল ও মাটি ব্যবস্থাপনা আইন, ২০১০' এর সংশ্লিষ্ট ধারার বিধান অনুযায়ী মোট ০৩ (তিন) টি মামলায় EBM ইট ভাটার মালিককে ৫,০০,০০০/- (পাঁচ লক্ষ) টাকা, ABS ইট ভাটার মালিককে ৫০,০০০/- (পঞ্চাশ হাজার) টাকা এবং আজাদ ব্রিকস ইট ভাটার মালিককে ৩,০০,০০০/- (তিন লক্ষ) টাকা মোট ৮,৫০,০০০/- (আট লক্ষ পঞ্চাশ হাজার) টাকা জরিমানা করা হয়।

মোবাইল কোর্টের অভিযানে নেতৃত্ব দেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার, রূপসা এবং নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জনাব নাসরিন আক্তার। অভিযান দলে আরো ছিলেন জেলা প্রশাসন, খুলনা'র দুইজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জনাব মোঃ রাকিবুল হাসান এবং জনাব দেবাশীষ বসাক।

মোবাইল কোর্টের অভিযানে সহযোগিতা প্রদান করেন রূপসা থানার অফিসার ইনচার্জ, পানি উন্নয়ন বোর্ড এর সদস্যগণ, উপজেলার অন্যান্য কর্মকর্তাবৃন্দ এবং এপিবিএন সদস্যগণ।

বগুড়ায় জমে উঠেছে পুরাতন শীতবস্ত্র বেচাকেনা

বগুড়ায় জমে উঠেছে পুরাতন শীতবস্ত্র বেচাকেনা


মোঃ সবুজ মিয়া বগুড়া প্রতিনিধিঃ
পৃথিবীর বিভিন্ন দেশ থেকে আসা এই কাপড়চোপড় স্বল্পমূল্যে কিনতে পারেন গ্রামগঞ্জের অল্প আয়ের মানুষেরা। সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ীরা জানিয়েছেন, জাপান, তাইওয়ান, উত্তর ও দক্ষিণ কোরিয়া থেকে এসব শীতবস্ত্র এদেশে আমদানি হয়। 

বগুড়া জেলা শহরের বিভিন্ন এলাকায় ভ্রাম্যমাণ দোকানিরা এসব কাপড় বিক্রি করছেন। ইতিমধ্যে শৈত্য প্রবাহ শুরু হয়েছে। তাই এসব শীতবস্ত্রের ভ্রাম্যমাণ দোকানে এখন উপচে পড়া ভিড়। শুধু স্বল্প আয়ের মানুষ নয়, মধ্যত্তিরাও এখন পুরাতন শীতবস্ত্র কিনতে ভিড় আসছে এসব দোকানে।

সরেজমিনে দেখা যায়, বগুড়া শহরের সাতমাথা, রেলওয়ে হকার্স মার্কেট সংলগ্ন এলাকা, রেললাইনের দুপাশে সকাল থেকে রাত পর্যন্ত লোকজন পুরানো শীতবস্ত্রের দোকানে ভিড় করছে। সব বয়সীদের শীতবস্ত্র ওইসব জায়গায় বিক্রি হচ্ছে।

১০ টাকা থেকে তিন হাজার টাকায় পাওয়া যাচ্ছে এসব শীতবস্ত্র। পাইকারী দোকানিরা এসব শীতবস্ত্রকে রিকন্ডিশন গাড়ির সঙ্গে তুলনা করে থাকেন। রেললাইন হাড্ডি পট্টিতে কথা হলো ভ্রাম্যমাণ শীতবস্ত্র বিক্রেতা আমজাদ হোসেনের সঙ্গে।

তিনি জানান, শিশুদের শীতবস্ত্র ১০ টাকা থেকে একশ টাকায় বিক্রি করছেন। ক্রেতাও অনেক। প্রতিদিন সাত থেকে আট হাজার টাকা বিক্রি হচ্ছে তার। ধনী-গরিব সবাই তাদের ক্রেতা। জ্যাকেট ৫০ টাকা থেকে তিন হাজার টাকা পর্যন্ত বিক্রি করছেন বলে জানান হাড্ডিপট্টির এক দোকানের কর্মচারী সোবহান।  

সাতমাথার  রাজু  জানান, "সোয়েটার ২০ টাকা থেকে ৫শ টাকায় বিক্রি করছি। ক্রেতাও অনেক।" শহরের জ্বলেশ্বরীতলার সাবিহা নামের এক ক্রেতা বলেন, অনেকটা নুতন মনে হয় এসব গরম কাপড়; দামও কম; কিন্তু মানের দিক থেকে অনেক ভালো। এসব পুরাতন কাপড় না থাকলে গরিব মানুষের খুবই কষ্ট হতো। কথা হলো সাতমাথায় ভ্রাম্যমাণ দোকানের ক্রেতা ইলিয়াসের সঙ্গে। তিনি বলেন, "সবাই পুরাতন কাপড় বললেও ক্রেতারা গরমের জন্য এসব কাপড় বেশ পছন্দ করে।" 

পুরাতন শীতবস্ত্র আমদানিকারী রংপুরের সাবিহুল হক বলেন, দেশ স্বাধীন হওয়ার পর থেকে এসব পুরাতন শীতকাপড় তার বাবা বিদেশ থেকে আমদানি করে আসছেন। উত্তরাঞ্চলের রংপুর থেকেই প্রথম এসব কাপড়ের ব্যাবসা শুরু হয়। পরে ছড়িয়ে পড়ে বগুড়াসহ অন্য জেলায়। কম মুল্যের পুরাতন এসব কাপড় উত্তরের গরিব মানুষের ভরসা বলে মনে করেন তিনি।

তিনি বলেন, দেশের শীত প্রধান এলাকা রংপুর, নীলফামারী, কুড়িগ্রাম, পঞ্চগড়, দিনাজপুর, লালমনিরহাটের বিক্রেতারা পাইকারিভাবে কিনে বিক্রি করছে এসব কাপড়। "মানের দিক থেকে খুবই ভালো। ডিজাইনও আধুনিক। কিছু জ্যাকেট, সোয়েটার, কোট দেখে বোঝার উপায় নেই এসব পুরাতন। ঠিক রি-কন্ডিশন আমদানি করা গাড়ির মতো।"

তিনি জানান, আগে ইংল্যান্ড, আমেরিকাসহ ইউরোপের বিভিন্ন দেশ থেকে এসব কাপড় আমদানি করা হলেও এখন তাইওয়ান, উত্তর কোরিয়া, দক্ষিণ কোরিয়া, জাপান থেকে আসছে।

পাইকারি বিক্রেতা ইদ্রিস আলী বলেন, আশির দশক থেকে পুরাতন শীতকাপড়ের ব্যবসা করছেন। চট্টগ্রামের বেশ কিছু ব্যবসায়ী এসব পুরাতন শীতকাপড় ইম্পোর্ট করে থাকেন। তাদের কাছ থেকে বেল হিসেবে কিনে এনে বগুড়া, নওগাঁ, জয়পুরহাট, সিরাজগঞ্জ, নাটোর, রাজশাহী, চাঁপাইনবাবগঞ্জ, গাইবান্ধা জেলায় বিক্রি করে থাকি। তারা খুচরা হিসেবে শহর, উপজেলা, ইউনিয়ন পর্যায়ে বিক্রি করেন।

চট্টগ্রাম থেকে জ্যাকেট প্রতি বেল পাইকারি ১২ হাজার থেকে ২৪ হাজার টাকা, সোয়েটার প্রতি বেল সাত হাজার থেকে ১১ হাজার টাকা, শিশুদের কাপড় আট হাজার থেকে ১১ হাজার টাকায় কেনা হয় বলে তিনি জানান।


বগুড়ায় ডিবির অভিযানে মাদক সহ ব্যবসায়ী আটক

বগুড়ায় ডিবির অভিযানে মাদক সহ ব্যবসায়ী আটক

মোঃ সবুজ মিয়া বগুড়া প্রতিনিধিঃ বগুড়ায় অভিযান চালিয়ে ১০০ পিচ ইয়াবা এবং ৬০ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার করেছে ডিবি। এসময় দুই মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বগুড়া জেলার পুলিশ সুপার জনাব আলী আশরাফ ভূঞা বিপিএম বার সার্বিক দিক নির্দেশনায়, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার(প্রশাসন) আলী হায়দার চৌধুরীর তত্ত্বাবধানে ওসি, ডিবি, বগুড়া আব্দুর রাজ্জাকের নেতৃত্বে এই অভিযান পরিচালিত হয়।

বগুড়া ডিবির একটি টিম ১৯ ডিসেম্বর বেলা ৩.৪৫ মিনিটে বগুড়া শহরের পুরান বগুড়া আযিযুল হক কলেজের কমার্স ভবনের পশ্চিমের মেইন গেট সংলগ্ন ওয়াপদা হইতে শেরে বাংলা হল গামী হিয়ারিং রাস্তা থেকে ১০০ পিচ ইয়াবাসহ স্বপন প্রামাণিককে (২৪) গ্রেফতার করে।

ডিবি বগুড়া অপর একটি টিম ১৮ ডিসেম্বর বগুড়া সদর থানাধীন চকসূত্রাপুর জহুরুল নগর থেকে পরিত্যক্ত অবস্থায় একটি ব্যাটারি চালিত অটো ভ্যানে ৪০ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার করে।

ডিবি বগুড়ার তৃতীয় একটি টিম ১৯ ডিসেম্বর বেলা ২.১০ মিনিটে বগুড়া সদর থানাধীন জলেশ্বরীতলা খাজাপাড়া মহল্লাস্থ জেলা পরিষদ গেট সংলগ্ন ভিআইপি সেলুনের সামনে থেকে ১০ বোতল ফেনসিডিলসহ আলোকে (৪৩) গ্রেফতার করে।

এ বিষয়ে অফিসার ইনচার্জ ডিবি আব্দুর রাজ্জাক জানান, গ্রেফতারকৃত আসামীদ্বয়ের বিরুদ্ধে বগুড়া সদর থানায় নিয়মিত মামলা রুজু করে আসামীদ্বয়কে বিজ্ঞ আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।


বঙ্গকন্যা হাসিনা রাইয়্যান ইসলাম রকিব

 বঙ্গকন্যা হাসিনা                   রাইয়্যান ইসলাম রকিব


               
"বাংলার প্রিয় কন্যা,বাঙালির সরকার,তুমি বঙ্গবন্ধুর কন্যা বাংলার অহংকার"।

"যখন হয়েছিল একাত্তরের নির্মম যুদ্ধ,তোমার বাবা ছিল সেই যুদ্ধের প্রধান নায়ক"।

"সাহসী বীরের মতো যখন দিলেন নেতৃত্ব,বাংলার ৩০ লক্ষ জনতা বিলিয়ে দিল রক্ত"।

"বঙ্গবন্ধুর মৃত্যুর পর যখন ঘনিয়ে এলো অন্ধকার,নেত্রী হয়ে সেই অন্ধকার দূর করে আনলে আলোর দিশার"।

"বাংলার ঘরে ঘরে আনলে বিদ্যুতের আলোর দিশা, ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার শপথ নিলে ২১ সালের প্রত্যয়"।

"বাংলার গরিব-দুঃখী জনতা বলে তুমি উন্নত দেশের সৃষ্টির রুপকার,সবুজ-শ্যামল বনভূমি বলে তুুমি বাংলার অহংকার"।

"মায়ানমারের মুসলিমরা যখন ছিল অপমানিত, লাঞ্ছিত,বঞ্চিত ও অবহেলিত বিশ্বের কোন দেশ করিলোনা সাহায্য"।

"তুমি আশ্রয় দিয়ে পেলে উপাধি "মাদার অফ হিউমিনিটি"বাংলা কে প্রতিষ্ঠা করলে বিশ্বের দরবারে সর্বোচ্চ মর্যাদায় অধিষ্ঠ"।

"অনেকেই বলেছিলো পারবে না তুমি পদ্মা সেতু গড়তে, অসম্ভবকে সম্ভব করে করেছ তুমি বিশ্বের দরবারে পদ্মার স্মৃতিস্তম্ভ"।

তোমাকে নিয়ে সুখী থাকবে এটাই বাঙ্গালীর অহংকার, তোমাকে নিয়ে গড়বে বাঙালি ডিজিটাল বাংলার রূপকার"।

"বঙ্গবন্ধুর দেওয়া কথা রেখে তুমি হয়েছো বিশ্বের অন্যতম নেত্রী, বাংলাকে উন্নত করার মর্যাদায় পিছপা হওনি তুমি তোমারই সাথে বাঙালি গড়বে উন্নত বঙ্গভূমি"।

 

         " রাইয়্যান ইসলাম রকিব"

            এইচএসসি দ্বিতীয় পর্ব

    বিজ্ঞান শাখা,রাণীশংকৈল ডিগ্রী কলেজ।

সরকার ভাস্কর্য নাটক করে ওয়াজ মাহফিল বন্ধ করেছে

সরকার ভাস্কর্য নাটক করে ওয়াজ মাহফিল বন্ধ করেছে



নিউজ ডেস্কঃসরকার আজকে 'ভাস্কর্য নাটক' তৈরি করে সারা বাংলাদেশে আলেমদের ওয়াজ মাহফিল বন্ধ করে দিয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) সাবেক ভিপি নুরুল হক নুর। তিনি বলেছেন, এই সরকার ভীত-সন্ত্রস্ত ও ক্ষমতা হারানোর ভয়ে আতঙ্কিত। তাই তারা আজকে জনগণের মিটিংকেও নিয়ন্ত্রণ করতে চায়।

আজ মঙ্গলবার রাজধানীর পুরানা পল্টন মোড়ে ঢাকসুতে হামলার এক বছর পূর্তি ও বিচারহীনতার প্রতিবাদে আয়োজিত সমাবেশে তিনি এ মন্তব্য করেন।

নুর বলেন, অনুমতি ছাড়া সভা-সমাবেশ নিষিদ্ধ করেছে ডিএমপি। আমরা ডিএমপির কোনো অনুমতি নিয়ে আজকের সমাবেশ করিনি। আমরা কোনো প্রকার সভা-সমাবেশ করার জন্য এই অবৈধ ভোটারবিহীন সরকার বা ডিএমপির ধার ধারি না।

তিনি বলেন, সংবিধান আমাদেরকে সভা-সমাবেশ ও মিটিং মিছিল করার অধিকার দিয়েছে। সেই অধিকার ভোটারবিহীন সরকার কেড়ে নেয়ার কে? তাই আমি সকল রাজনৈতিক দলকে বলব, সভা-সমাবেশ করার জন্য এই ভোটারবিহীন সরকার বা ডিএমপির কোনও অনুমতি নেবেন না। যদি আপনারা এই সরকারের অনুমতি নিয়ে সভা-সমাবেশ করেন, তাহলে আমরা মনে করবো আপনারা স্বৈরাচারের আইন-কানুন মানছেন এবং স্বৈরাচারকে প্রশ্রয় দিচ্ছেন।

তিনি আরো বলেন, এদেশের সকল অসম্প্রদায়িক জনগণকে বলবো, ভোটারবিহীন অবৈধ স্বৈরাচার সরকারের ফাঁদে পা দেওয়া যাবে না। তারা বিভিন্ন সময়ে 'জঙ্গি নাটক' সাজিয়ে পশ্চিমাদের সাহায্য নেয়ার চেষ্টা করেছে। পশ্চিমাদের বুঝিয়েছে এদেশে উগ্র ইসলামবাদ আছে। সেজন্য বিভিন্ন জঙ্গি অপারেশনের নাটক সাজিয়েছে।

এর আগে দুপুর সাড়ে ১২টায় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার থেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র সংসদ ঢাকসুতে হামলার এক বছর পূর্তি ও বিচারহীনতার প্রতিবাদে কালো পতাকা মিছিল নিয়ে পল্টন মোড়ে আসে ছাত্র অধিকার পরিষদ
তথ্যের উৎসঃ কালের কন্ঠ

নড়াইলে ইয়াবাসহ মাদক ব্যবসায়ী কে গ্রেফতার করেছে র‍্যাব

নড়াইলে  ইয়াবাসহ মাদক ব্যবসায়ী কে গ্রেফতার করেছে র‍্যাব
নড়াইলে  ইয়াবাসহ মাদক ব্যবসায়ী কে গ্রেফতার করেছে র‍্যাব


মো: আজিজুর বিশ্বাস ষ্টাফ রিপোর্টার নড়াইলঃর‍্যাব ৬ (স্পেশাল কোম্পানী) খুলনার একটি আভিযানিক দল গোপন সংবাদের মাধ্যমে জানতে পারে যে, নড়াইল জেলার লোহাগড়া থানাধীন গোপীনাথপুর গ্রামস্থ্য নবগঙ্গা নদীর উপর অবস্থিত সিএমবি ব্রিজ এর দক্ষিণ পাশে কতিপয় ব্যক্তি মাদকদ্রব্য ক্রয়-বিক্রয়ের উদ্দেশ্য অবস্থান করছে।
এরুপ প্রাপ্ত তথ্যের ভিত্তিতে অভিযানিক দলটি অদ্য ২২ ডিসেম্বর ২০২০ খ্রিঃ ১৬.৫০ ঘটিকায়  উক্ত স্থানে অভিযান পরিচালনা করে মোঃ সবুজ মিনা(২২), পিতা-মোঃ লিয়াকত মিনা, মাতা-মোছাঃ তহমিনা, সাং-পারমল্লিকপুর, থানা-লোহাগড়া, জেলা-নড়াইলকে ১৯১ পিস ইয়াবাসহ হাতেনাতে গ্রেফতার করে।

গ্রেফতারকৃত আসামীর বিরুদ্ধে নড়াইল জেলার লোহাগড়া থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে  মামলা রুজু প্রক্রিয়াধীন।  

সড়ক ও জনপথের জায়গা অবৈধ বালু ও খোয়া বিক্রেতাদের দখলে

সড়ক ও জনপথের জায়গা অবৈধ বালু ও খোয়া বিক্রেতাদের দখলে


আঃ হামিদ মধুপুর টাঙ্গাইল প্রতিনিধিঃটাঙ্গাইলের মধুপুরের চাঁড়ালজানীতে সড়ক ও জনপথের জায়গায় মধুপুর ময়মনসিংহ মহাসড়ক ঘেঁষে অবৈধভাবে কতিপয় প্রভাবশালী বালু ও খোয়া ব্যবসায়ী বালু-খোয়া রেখে বহুদিন যাবৎ ব্যবসা করে আসছেন।
প্রশাসনের চোখের সামনে কি ভাবে সরকারি জায়গা অবৈধভাবে বে-দখল
করে ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে তা বোধগম্য নয়। প্রতিনিয়ত রাস্তার সাথে বালু খোয়া ও বালু ভর্তি ট্রাক রাখার কারনে যানযট সহ দুর্ঘটনার শিকার হচ্ছে সাধারণ মানুষ। সড়ক ও জনপথের কর্মকর্তা আলমাস উদ্দিন মুঠোফোনে জানান- বারবার বালু খোয়া ব্যবসায়ীদের নোটিশ দেওয়ার পরেও তা অমান্য করে জোড় পূর্বক আমাদের জায়গায় ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছেন। তিনি উর্ধতন কর্তৃপক্ষের সু- দৃষ্টি কামনা করেছেন। এলাকাবাসীর দাবি এই বালু খোয়ার কারনে বিভিন্ন সময় সড়ক দুর্ঘটনাসহ নানা রোগে আক্রান্ত হচ্ছেন এলাকার জনসাধারণ।

সাপ্লাই সাহেবের জানাযা শেষ : হাজারো মানুষের শ্রদ্ধা

সাপ্লাই সাহেবের জানাযা শেষ : হাজারো মানুষের শ্রদ্ধা



ডা.এম.এ.মান্নান,টাংগাইল জেলা প্রতিনিধি:
টাঙ্গাইলের নাগরপুর উপজেলার প্রবীণতম ব্যক্তি হুজুর পীর সাহেব মীর সামছুল হুদা সাপ্লাই সাহেব (১২৫+) এর জানাজার নামাজে হাজার হাজার মুসুল্লি অশ্রুশীক্ত হলেন আজ।

নাগরপুর দাখিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ আব্দুস ছালাম আনছারির ইমামতিতে, ২২ ডিসেম্বর মঙ্গলবার বাদ যোহর নাগরপুর উপজেলার যদুনাথ ময়দান তথা হাসপাতাল মাঠে মরহুমের জানাজার নামাজ অনুষ্ঠিত হয়েছে।
ভেদাভেদ ভুলে ধর্ম, বর্ণ, শ্রেণি, পেশা, রাজনৈতিক মতাদর্শ ভুলে সকলেই শ্রদ্ধাভাজন ব্যক্তিটির জন্য দোয়া কামনায় এক কাতারে সারিবদ্ধ হয়ে দাঁড়িয়ে পড়েন।

উল্লেখ মীর সামছুল হুদা সাপ্লাই সাহেবের সৎ গুনের কথা বলে শেষ করার মত নয়। যার জন্মই হয়েছিল মানব সেবার জন্য। তিনি সত্যিই এক দীর্ঘ অধ্যায়ের সমাপ্তি করেছেন। কর্মস্থলের সুবাদে নাগরপুরে এসে শেষনিঃশ্বাস ত্যাগ করা পর্যন্ত নাগরপুরেই থেকে গেলেন বিশেষ মানবিক গুণাবলী ও ধর্মীয় অভিজ্ঞান এর এক কিংবদন্তি হয়ে। তাঁর উচ্চতর দার্শনিক বোধ জ্ঞানান্বেষী সুধীমহলে আজও গুরুত্বের সাথে সমাদৃত। তাঁর লিখিত দুটি বই The Economic relativity ও Ultimate Law অনেক গবেষণারই অবশ্য পাঠ্যরুপে স্বীকৃত। এ কথাগুলো বলেছেন বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার মো. জহিরুল হক।

এছাড়াও মরহুমের দীর্ঘ জীবনকালের উপর স্মৃতিচারণ করেন বিএনপির সাবেক পানি সম্পদ প্রতি মন্ত্রী এ্যাড. গৌতম চক্রবর্তী, উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি রিয়াজ উদ্দিন তালুকদার, এ কে এম কামরুজ্জামান মনি, মো. মতিয়ার রহমান মতি, সাধারণ সম্পাদক কুরত আলী, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মো. হুমায়ুন কবির প্রমুখ।

সাপ্লাই সাহেব ছিলেন উপজেলার সততার উদাহরণ, প্রবীণতম ব্যক্তি সকলের শ্রদ্ধাভাজন ডাবল এমএ, ৭টি ভাষায় পারদর্শী, ইসলামি চিন্তাবীদ, বিশ্ব শান্তিমিশন, শ্রষ্টা তন্ত্রের প্রবর্তক মীর সামছুল হুদা সাপ্লাই সাহেব গতকাল সোমবার ২১ ডিসেম্বর ২০২০ সন্ধ্যা আনুমানিক ৭টা এর সময় দীর্ঘ ১২৫ বছরের বেশি সময়ের সমাপ্তি টেনেছেন। সত্যি কথা বলতে তার সঠিক বয়স আমদের অজানা। তবে এলাকার প্রবীণদের ধারনা তিনি ১৪০+ বছরের সু দীর্ঘ জীবনকাল পার করেছেন।
ইন্না-লিল্লাহী ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন। তার বিদেহী আত্মার শান্তির জন্য ভক্তবৃন্দ ও এলাকাবাসী এই ক্ষণজন্মা ব্যক্তির জন্য দোয়া প্রার্থনা করেন।

খুলনা মহানগর ছাত্রলীগের শোক বিবৃতি প্রকাশ


তুহিন রানা (আব্রাহাম) ; খুলনা নগর প্রতিনিধিঃ
বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের সদস্য শেখ সোহেল উদ্দিনের শ্যালকের মৃত্যুতে খুলনা মহানগর ছাত্রলীগের শোক বিবৃতিতে বলা হয়ঃ

বঙ্গবন্ধুর ভ্রাতুষ্পুত্র, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের সভাপতি মন্ডলীর সদস্য ও বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের সফল পরিচালক জনাব শেখ সোহেল এর শ্যালক   সৈয়দ হায়দার আজ সকালে আমেরিকায় ইন্তেকাল করেছেন।

(ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)।

তার মৃত্যুতে আমরা খুলনা মহানগর ছাত্রলীগ পরিবার গভীর শোক ও সমবেদনা প্রকাশ করছি এবং মরহুমের বিহেদী আত্মার মাগফিরাত কামনা করছি।

শোক বিবৃতিদাতারা হলেন খুলনা মহানগর ছাত্রলীগের সভাপতি শেখ শাহাজালাল হোসেন সুজন ও সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান রাসেল।

পটিয়ায় আড়াই হাজার পিস ইয়াবাসহ দুইজন আটক

পটিয়ায় আড়াই হাজার পিস ইয়াবাসহ দুইজন আটক



পটিয়া (চট্টগ্রাম) থেকে সেলিম চৌধুরীঃ- চট্টগ্রামে পটিয়ায় দুই হাজার ৫০০ পিস ইয়াবাসহ দুইজন'কে ইয়াবাসহ আটক করেছে মাদকদ্রব্য অধিদপ্তরের কর্মকর্তা। ২১ ডিসেম্বর 

গোপন সংবাদের ভিত্তিতে উপ-পরিচালক  হুমায়ুন কবির খন্দকার এর সার্বিক তত্ত্বাবধানে এবং পরিদর্শক সাইফুল ইসলাম এর নেতৃত্বে  মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর, জেলা কার্যালয়, চট্টগ্রাম খ-সার্কেল(পটিয়া) এর একটি টিম ২,৫০০ (দুই হাজার পাঁচশত) পিস ইয়াবা সহ উখিয়া ও সাতকানিয়া এলাকার দুইজন'কে গ্রেফতার করে। তারা হলেন মোঃ নুরুল ইসলাম (২৩), পিং লিয়াকত আলী, , সাং- ঝুমছড়ি (লামার পাড়া), ওয়ার্ড নং-০৩, রাজাপালং ইউনিয়ন পরিষদ, থানা  উখিয়া, জেলা- কক্সবাজার এবং সহযোগি মোহাম্মদ এনাম (৩৬), পিতাঃ মৃত শফি আহমদ, , সাং  কমিরা পাড়া (আবুল খায়েরের বাড়ি), বাজালিয়া, পোঃ  বাজালিয়া- ৪৩৮৮, থানাঃ সাতকানিয়া, জেলাঃ চট্টগ্রাম কে চট্টগ্রাম অভিমুখে পাচারকালে ২৫০০ পিস ইয়াবা  সহ  চট্টগ্রাম - কক্সবাজার  মহাসড়কের পটিয়া থানাধীন মুজাফরাবাদ মেসার্স নজরুল এন্ড কোম্পানি ফিলিং স্টেশন এর সামনে থেকে সৌদিয়া বাস নং চট্ট মেট্রো-ব-১১-১০৮০ থেকে আটক করা হয়। আটক ইয়াবা কারবারি  ইতোপূর্বেও ইয়াবা পাচার করেছে বলে জানায় শিকার করেন। তাদের বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য আইনে মামলা রুজু করা হয়েছে। 

ফরকেরহাট বাজারের বণিক সমিতি নির্বাচনে দোয়া প্রার্থী

 ফরকেরহাট বাজারের বণিক সমিতি নির্বাচনে দোয়া প্রার্থী

মোঃআকাশ সরকার,কুড়িগ্রাম প্রতিনিধিঃআসছে আগামী ৩১ ডিসেম্বর ২০২০ইং রোজঃবূহস্পতিবার ফরকেরহাট বাজার বণিক সমিতির ত্রি-বার্ষিক নির্বাচনে""সাংগঠনিক সম্পাদক"" পদে তরুন,শিক্ষিত,অসহায়  মানুষের পাশে দাড়ানো সৎ নির্ভীক, নেতা এফ,এম টেলিকম এর মালিক মোঃ

আব্দুল খালেক সরকার( বি.এ)..সবার কাছে দোয়া চেয়েছে। মোঃআব্দুল খালেক সরকার বিভিন্ন সেবা মুলক কাজ করে থাকে।তিনি মহামারী করোনা ভাইরাসে মানুষের মাঝে সচেতনামৃলক প্রচার প্রচারণা, মানুষের মাঝে মাস্ক বিতারণসহ নানা মুখী পদক্ষেত নিয়েছিলেন।জনাব মোঃআব্দুল খালেক সরকার বলেন,,ফরকেরহাট বাজার বণিক সমিতির নিবাচনে জয়ী হলে,, তিনি ফরকেরহাট বাজারের সাবিক উন্নয়ন থেকে শুরু যাবতীয় সকল সমস্যা দৃর করবে।

ভাস্কর্য ভাঙার প্রতিবাদে দিনাজপুরে মানববন্ধন

ভাস্কর্য ভাঙার প্রতিবাদে দিনাজপুরে  মানববন্ধন
ভাস্কর্য ভাঙার প্রতিবাদে দিনাজপুরে  মানববন্ধন


মামুনুর রশিদ,দিনাজপুর প্রতিনিধি: জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্য ভেঙ্গে ফেলা এবং বঙ্গবন্ধুর প্রতি অসন্মানের প্রতিবাদে বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা লীগ দিনাজপুর শাখা মানববন্ধন কর্মসুচি পালন করেছে। 
আজ মঙ্গলবার দুপুর ১টায় দিনাজপুর জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনের সড়কে অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে মুক্তিযোদ্ধারা ভাস্কর্য বিরোধী অপশক্তিকে প্রতিহত করার ঘোষনা দিয়ে ভাস্কর্য ভাঙ্গার সাথে জড়িতদের রাষ্ট্রীয় শত্রু উল্লেখ করে অবিলম্বে তাদের চিহ্নিত করে আইনের আওতায় আনার দাবী জানান। 
মানববন্ধন শেষে জেলা প্রশাসক কার্যালয় চত্বরে স্থাপিত বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতির সামনে বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারের জন্য মোনাজাত করা হয়।

আল্লামা নূর হুসাইন কাসেমী (রহ) এর স্বরণে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল

আল্লামা নূর হুসাইন কাসেমী (রহ) এর স্বরণে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল
আল্লামা নূর হুসাইন কাসেমী (রহ) এর স্বরণে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল
 আব্দুর রাজ্জাক , হরিরামপুর (মানিকগঞ্জ) প্রতিনিধি:
মানিকগঞ্জ জেলা সম্পন্ন এবং শীতার্তদের মাঝে পাঁচ হাজার কম্বল বিতরণের পরিকল্পনা গ্রহণ।
উক্ত পরিষদের সেক্রেটারি প্রভাষক মাওলানা আব্দুল কাদেরের পরিচালনায় ও সভাপতি হাফেজ মাওলানা মুফতি মোঃ রফিকুল ইসলাম সাহেবের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন ইমাম-মুয়াজ্জন কল্যাণ পরিষদের উপদেষ্টা মন্ডলীর সদস্য  মুহাদ্দিস মাওলানা শেখ মোঃ সালাহ উদ্দিন, মাওলানা আব্দুল মতিন, মাওলানা দিদার আল আজহারী, ড. ইঞ্জিনিয়ার মোঃ ফারুক হোসেন, সিনিয়র সহ সভাপতি মাওলানা জাবের আল সাফা, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাওলানা আব্দুর রহমান, সমাজকল্যাণ সম্পাদক মাওলানা মহিউদ্দিন, অর্থ সম্পাদক মাওলানা শেখ মাহবুবুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক হাঃ মাওঃ আশিকুল ইসলাম ছানোয়ার, প্রচার সম্পাদক মাওলানা হাবিবুর রহমান নোমানী, মাওলানা জুবায়ের হুসাইন ফয়জী সহ আরোও অনেকে বক্তব্য পেশ করেন। এ সময় মানিকগঞ্জ পৌরসভার  ইমাম মুয়াজ্জিন সহ মানিকগঞ্জ জেলার সকল থানার প্রতিনিধি ইমামগণ উপস্থিত ছিলেন। পরিশেষে আল্লামা নূর হুসাইন কাসেমী রঃ এর স্বরণে দোয়া ও মোনাজাত পরিচালনা করেন ইমাম-মুয়াজ্জিন কল্যাণ পরিষদের সভাপতি হাফেজ মাওলানা মুফতি মোঃ রফিকুল ইসলাম।

উক্ত প্রোগ্রাম থেকে মানিকগঞ্জের দরিদ্র ও শীতার্ত মানুষের মাঝে পাঁচ হাজার কম্বল বিতরণের পরিকল্পনা নেওয়া হয়।

ঝিকরগাছার গদখালী প্রণোদনা প্যাকেজে কৃষিঋণ বিতরণ

ঝিকরগাছার গদখালী প্রণোদনা প্যাকেজে কৃষিঋণ বিতরণ
ঝিকরগাছার গদখালী প্রণোদনা প্যাকেজে কৃষিঋণ বিতরণ

মোঃ ইকরামুল করিম, ঝিকরগাছা উপজেলা প্রতিনিধিঃ ব্যাংক এশিয়া গদখালি এজেন্ট আউটলেট এর উদ্দোগে প্রনোদনা প্যাকেজে ৪% ইন্টারেস্টে কৃষি ঋন বিতরণ করা হয়।মোঃ আব্দুর রহিম, সভাপতি, বাংলাদেশ ফ্লাওয়ার সোসাইটি(বিএফএস)এর সভাপতিত্বে প্রনোদনা প্যাকেজে ৪% ইন্টারেস্টে কৃষি ঋন বিতরণ করা হয়।
অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন মোঃ রবিউল ইসলাম, হেড অব ব্রাঞ্চ, যশোর।
বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন শেখ মোঃ জনি। এজেন্ট আউটলেট এর উদ্যোক্তা মোঃ আজাহারুল ইসলাম এর উপস্থাপনায় উক্ত অনুষ্ঠান পরিচালিত হয়।
বার্ষিক সেরা কর্মকর্তা হিসাবে মোঃ ফারুক হোসেন কে পুরষ্কৃত করা হয়। এছাড়া কোভিড-১৯ কালিন বিশেষ  সেবার জন্য শামিমা আক্তার এবং শাখা ইনচার্জ নাসরিন বুলবুল কে বিশেষ ধন্যবাদ জ্ঞাপন করা হয়।
উক্ত অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন ব্যাংক এশিয়া যশোর শাখার মোঃ লিকু আহমেদ, মোঃ বেলাল হোসেন, ব্যবসায়ী শফিকুল ইসলাম শফি, মোতালেব হোসেন, রিপন কবীর, হোটেল ব্যবসায়ী মোঃ আব্দুর রব, আব্দুল কাদের প্রমুখ।

লোহাগড়া ভূমিহীনদের ২৫ টা ঘর উদ্বোধন

লোহাগড়া ভূমিহীনদের ২৫ টা ঘর উদ্বোধন
লোহাগড়া ভূমিহীনদের ২৫ টা ঘর উদ্বোধন

মো: আজিজুর বিশ্বাস ষ্টাফ রিপোর্টার নড়াইলঃ
নড়াইল জেলার লোহাগড়া উপজেলার শালনগর ইউনিয়নের মাকড়াইল গ্রামে মুজিব শতবর্ষে ভূমিহীনদের পূর্নবাসনের দুর্যোগ সহনীয় গৃহ নির্মাণের উদ্বোধন।

মঙ্গলবার দুপুরে নড়াইল জেলা প্রশাসক আঞ্জুমান আরা উদ্বোধন করেন।শালনগর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান খান তসরুল ইসলামের সভাপতিত্বে উদ্বোধন অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন, লোহাগড়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা এসএম অাব্দুর হান্নান রুনু, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রোসলিনা পারভিন, সহকারী কমিশনার ভূমি রাখি ব্যানার্জি, বীর মুক্তিযোদ্ধা এম এম হাসান,মো:তুরফান সিকদার, মো: হারেজ সিকদার,মো: অাবুল কালাম,শালনগর ইউপি সচিব মাসুদুর রহমান,কামরুল ইসলাম প্রমূখ।


৪২লাখ ৭৫হাজার টাকা ব্যায়ে এক একর জমির উপরে ২৫ টি ঘর নির্মাণ করা হবে।

নবীনগরে পঙ্গুত্ব নিয়েই জীবনযুদ্ধ চালিয়ে যাচ্ছেন জিতেন্দ্র

নবীনগরে পঙ্গুত্ব নিয়েই জীবনযুদ্ধ চালিয়ে যাচ্ছেন জিতেন্দ্র
নবীনগরে পঙ্গুত্ব নিয়েই জীবনযুদ্ধ চালিয়ে যাচ্ছেন জিতেন্দ্র
এস.এম অলিউল্লাহ, নবীনগর (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধিঃ ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলার জিনদপুর ইউনিয়নের জিনদপুর গ্রামের বাসিন্দা জিতেন্দ্র সরকার। স্বাভাবিকভাবেই জন্ম নেয় জিতেন্দ্র কিন্তু ছয় মাসেই তার মাকে ছোটাছুটি করতে হয়েছে এদিক ওদিক। হঠাৎ জ্বরের আক্রমণে চিকিৎসা দিতে না পারায় টাইফয়েডে রূপ নেয়। 

বাবা ধনরঞ্জন সরকার ছেলের সুচিকিৎসা নিশ্চিত করতে গ্রাম্য ডাক্তার আর কবিরাজের কাছে দিনরাত ছুটেছেন। অনেক ছুটাছুটি করেও ছেলেকে আর সুস্থ স্বাভাবিক রাখতে পারলেন না তারা। টাইফয়েডের কারণে শিশুকালেই জিতেন্দ্রর দুটি পা বিকল (পঙ্গু) হয়ে যায়। 

পরিবার পরিজনের কাছে সে তখন হয়ে গেল বিশাল একটা বোঝা। কয়েকদিন আগেও যে ছিল বাবা মায়ের আদরের সন্তান। তখন উনারা তাকে বড় আদর করে জিতেন নামেই ডাকতো। আস্তে আস্তে পঙ্গুত্ব নিয়ে বড় হতে লাগল জিতেন, সংসারের অভাব অনটন তাকে ভীষণ কষ্ট দিত।

নিজের অক্ষমতা নিয়েই পরিবারের সদস্যদের বোঝা কমাতে বাড়ির পাশে কড়ইবাড়ি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ভর্তি হয় পড়াশোনা করতে।

ইঞ্জিনের বিয়ারিং দিয়ে তিন চাকার একটি ছোট্ট গাড়ি বানিয়ে তার উপর একটি বাঁশের পাতি তে করে বই, আর সামান্য পরিসরে বাচ্চাদের খাবার জিনিস নিয়ে দুই হাতের আর হাঁটুর উপর ভর করে স্কুলে যেত সে।

উপস্থিত সকল ছাত্র-ছাত্রীদের কাছে স্কুল শুরুর আগে একপাশে বসে ঐ সব খাবার সামগ্রী বিক্রয় করতো সে। স্কুল শুরু হলে সব বন্ধ করে সেও ক্লাসে ঢুকে যেতো, ফ্লোরে বসেই সে পড়াশোনা করতে চায়।

শিক্ষকরাও তাকে তার শারীরিক অবস্থা বিবেচনা করে বিভিন্ন ভাবে সহযোগিতা করতো। এইভাবেই সে প্রাইমারি স্কুলের পাশে দীর্ঘ দিন ব্যবসা করে পরিবারকে আর্থিক সহায়তা করে গেছেন সেইসাথে সামান্য পড়াশোনাও।

স্কুল ছুটির পর বাড়িতে গিয়েও বসে থাকতেন না তিনি, সময়ের সাথে তার শারীরিক বৃদ্ধি নিয়ে চিন্তায় বিভোর হয়ে থাকতো সে, সে তখন চিন্তা করতো এই শারীরিক প্রতিবন্ধী অবস্থায় জীবনের বাকি দিন গুলো সে কিভাবে কাটাবে ?
তাই সে অবসর সময়ে প্রতিবেশী নিকটাত্মীয় কাছে গিয়ে স্বপ্রণোদিত হয়ে কুটির শিল্পের কাজ শিখতো।

বার বছর বয়সেই সে বেশ কয়েকটি কাজ অত্যন্ত নিখুঁতভাবে সে আয়ত্ব করে নেয়। জীবন যুদ্ধে এভাবেই চলছে দিন রাত,বছরের পর বছর।  এইভাবেই প্রতিটা দিন রাত কষ্ট করে কুটির ও হস্তশিল্পের কাজ করে পরিবারের পাশে থেকে ব্যাপক সহযোগিতা করে যাচ্ছেন জিতেন্দ্র সরকার।

তিন বোন আর চার ভাইয়ের পরিবারে সে কখনো বোঝা হয়ে থাকতে চায়নি।
পরিবারের প্রতি দায়িত্ববোধ আর আত্মসম্মান বোধের কারণে দিনরাত খেটেছেন নিজের শারীরিক অক্ষমতা থাকার পরও, তবুও কারো কাছে ভিক্ষাবৃত্তি করেননি জিতেন।

এরই মাঝে সে বিয়ে করেছেন। তার স্ত্রীর কোল জুড়ে আসেন দুই কন্যা সন্তান, কোলে পিঠে করে বড় করেছেন । তার দুই মেয়েই এখন জিনদপুর ইউনিয়ন স্কুল এন্ড কলেজে পড়াশোনা করছেন।

হস্তশিল্পের কাজ করে তিনি প্রতিমাসে যায় আয় আয় করেন তা দিয়ে পরিবার সুন্দরভাবে চললেও জীবদ্দশায় মেয়েদের বিয়ে দিয়ে সুখ দেখে যেতে এখনো সে হাড়ভাঙা পরিশ্রম করে যাচ্ছেন, নিজের প্রস্তুতকারী পণ্যগুলো নিয়ে নিকটস্থ হাট বাজারে যেতে অনেক কষ্ট হয় বলে জানান তিনি।

তাই অর্থসংকটের জন্য একটি অটোরিকশা ক্রয় করার ক্ষমতা নেই তার, অনেক আক্ষেপ নিয়ে তিনি বলেন, জীবন চলার পথে অনেক কষ্ট করে চলছি তবু কাউকে বিরক্ত করিনি, কারো কাছে সহজে হাত পাতিনি, নিজের মতো চলার চেষ্টা করেছি, কিন্তু আর কুলিয়ে উঠতে পারছিনা। একটি অটোরিকশা কিনতে পারলে ভালো হতো, মালামাল নিয়ে অনেক ভাড়া দিয়ে এখানে সেখানে যেতে হয়,সংসারের খরচ বেড়েছে তাই আর পারছিনা।

আত্মসম্মানবোধ সম্পন্ন জিতেন পঙ্গুত্ব নিয়ে জীবন যুদ্ধে পরাজিত হয়ে এই পড়ন্ত বিকেলে অভাবের কারণে হেরে যাওয়া কি কারো কাছে ভালো লাগবে ?
যেখানে অর্থবিত্ত নিয়েও এই সমাজে মানুষ অমানুষ বর্বর হয়েও থাকতে দেখা যায়। সেখানে জিতেন্দ্র সরকার তো একটা দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে এই মানব সভ্যতার জন্য।

নওগাঁয়, কৃষকের স্বপ্নের ফসল ধান স্বপ্ন ছোঁয়ার আশায়

নওগাঁয়,  কৃষকের স্বপ্নের ফসল ধান স্বপ্ন ছোঁয়ার আশায়
নওগাঁয়,  কৃষকের স্বপ্নের ফসল ধান স্বপ্ন ছোঁয়ার আশায়
 
রহমতউল্লাহ আশিকুর  জামান নুর, নওগাঁ জেলা প্রতিনিধিঃনওগাঁর কৃষকের  মাঠে মাঠে সোনালী ধানের চারা ,কৃষকের এক স্বপ্ন ছোঁয়া ফসল ।
নওগাঁ জেলার১১ টি উপজেলা জুড়ে প্রধান শস্য ধান এছাড়াও রয়েছে,বিভিন্ন সবজি মসলার আবাদ । ধানের জাত গুলোর মধ্যে অন্যতম ব্রি- ধান , ব্রি-ধান ২৮, কাটারি  ভোগ , জিরাশাল সহ বিভিন্ন  দেশী বিদেশী জাতের ধান । 

সবুজের এলে হার এ যেন কৃষকের মন ছোঁয়া  আবহাওয়া বাণী।
বাংলাদেশ কৃষিপ্রধান দেশ এবং দেশের প্রায়, কৃষিপণ্যের সর্বোত্তম ধান। 
 ধান বাংলাদেশের প্রধান শস্য  । দেশের খাদ্যের  চাহিদার চালের যোগান  প্রায় বেশির ভাগই, পূরণ হয় বাংলাদেশের উৎপাদিত ধান দারা।
নওগাঁ জেলা কৃষকের অন্যতম শ্রেষ্ঠ ফসল ধান আর  দেশের প্রায় অর্ধেক ধান  এ জেলায়  উৎপাদিত হয়।  আমন মৌসুমে জেলায় এক লক্ষ ৯১ হাজার ৮৫০হেক্টর জমিতে আমন চাষ করা হয় এর লক্ষ্যমাত্রা হেক্টরপ্রতি ৩.৪০ মেট্রিক টন যা  ৬ লক্ষ ৫২ হাজার ২৯০ মেট্রিক টন চাল উৎপাদন সম্ভাবনা হয় ।  
ধার্যকৃত লক্ষ্য মাত্রার চেয়ে ৪০ হাজার ১৫ মেট্রিক টন বেশী ।
তবে আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে "ইরি" মৌসুমে  এই  লক্ষ্যমাত্রা কে অতিক্রম করবে যা দেশের সার্বক্ষণিক খাদ্য চাহিদা যোগান দিতে প্রস্তুত ।
আমন মৌসুমে  জেলার বিভিন্ন অঞ্চল প্লাবিত হয় ধান নষ্ট হয় এতে করে এ জেলার কৃষক  কিছুটা বিচলিত হন তবুও ধার্যকৃত লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে বেশি উৎপাদিত হওয়ায় সন্তুষ্ঠ এ জেলার কৃষক ।

নারায়ণগঞ্জে হচ্ছে বঙ্গবন্ধু বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়

নারায়ণগঞ্জে হচ্ছে বঙ্গবন্ধু বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়
নারায়ণগঞ্জে হচ্ছে বঙ্গবন্ধু বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়

শিপন,নারায়গঞ্জঃঅবশেষে হচ্ছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সরকারি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় নারায়ণগঞ্জে। ইতিমধ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিশ্ববিদ্যালয়টি স্থাপনের প্রস্তাবের অনুমোদন দিয়েছেন।

প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদন দেওয়ার পর গত ৯ ডিসেম্বর বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনে চিঠি দিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। মন্ত্রণালয়ের সরকারি সাধারণ বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সিনিয়র সহকারী সচিব নীলিমা আফরোজ স্বাক্ষরিত ওই চিঠিতে মঞ্জুরী কমিশনের চেয়ারম্যানকে নারায়ণগঞ্জে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের জন্য যুগোপযোগী খসড়া আইন প্রস্তুতের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

সূত্র জানায়, বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের খসড়া আইন মন্ত্রণালয়ে উত্থাপনের পর তা পাস হলে প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়টি স্থাপন হবে।

কুড়িগ্রামে হচ্ছে কৃষিবিশ্ববিদ্যালয়

 কুড়িগ্রামে হচ্ছে কৃষিবিশ্ববিদ্যালয়


মোঃআকাশ সরকার,কুড়িগ্রাম প্রতিনিধিঃ উত্তরের সীমান্তবর্তী দারিদ্রপীড়িত জেলা কুড়িগ্রামে কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের খসড়া প্রস্তাব মন্ত্রীসভায় অনুমোদন হওয়ায় উচ্ছ্বাস প্রকাশের পাশাপাশি সরকার প্রধান ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছে কুড়িগ্রাম জেলার সর্বস্তরের জনগণ। সোমবার (২১ ডিসেম্বর) মন্ত্রীসভার ভার্চুয়াল সভায় ‘ কুড়িগ্রাম কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় আইন-২০২০’ এর খসড়া অনুমোদন হওয়ার প্রতিক্রিয়ায় জেলা জুড়ে আনন্দ ছড়িয়ে পড়ে। শিক্ষার্থী, অভিভাবক ও পেশাজীবীসহ বিশিষ্টজনরা সরকারের এ সিদ্ধান্তকে সাধুবাদ জানানোর পাশাপাশি কৃতজ্ঞতাও প্রকাশ করছেন। সামাজিক মাধ্যমে চলছে সরকার প্রধানকে নিয়ে বন্দনা।

কুড়িগ্রাম সরকারি কলেজের শিক্ষার্থী সালমান দিদার জানান, ‘আমরা সত্যি উচ্ছ্বসিত। এটা জেলার জন্য অনন্য পাওয়া। এই বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন হলে শুধু শিক্ষার ক্ষেত্রে নয়, জেলায় কৃষির আধুনিকায়ন, গবেষণা ও উন্নয়ণের পাশাপাশি অর্থনৈতিক উন্নয়নে এই বিশ্ববিদ্যালয় ভূমিকা রাখবে। আমরা প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানাই। তিনি বরাবরের মতো আবারও কুড়িগ্রামের মানুষের প্রতি তার আন্তরিকতার বহি:প্রকাশ ঘটালেন।’

ওই কলেজের সাবেক শিক্ষার্থী মেহেদী হাসান বলেন, ‘ এটা জেলাবাসীর বহুল প্রতিক্ষিত একটি পাওয়া। দেরিতে হলেও এই চাওয়ার বাস্তায়ন হচ্ছে এটা জেনে আমিসহ জেলাবাসী সত্যি শিহরিত। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নিকট আমরা কৃতজ্ঞ। এই বিশ্ববিদ্যালয়ে আমি পড়ার সুযোগ না পেলেও আমাদের পরবর্তী প্রজন্ম পড়তে পারবে এটা ভেবেই ভালো লাগছে। কৃষি প্রধান কৃড়িগ্রামে এই বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার সিদ্ধান্ত অত্যন্ত যুগোপযোগী ও ফলপ্রসু হবে। এর ফলে এ অঞ্চলের শিক্ষার্থীদের জ্ঞানের বিকাশসহ এলাকার কৃষির উন্নয়ন, সমৃদ্ধি ও সম্প্রসারণ ঘটবে।’

শিক্ষার্থীদের পাশাপাশি রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠনের নেতৃবিন্দ সরকারের এই সিন্ধান্তকে সাধুবাদ জানিয়েছেন। তারা বলছেন, একটি বিশ্ববিদ্যালয় এ জেলার মানুষের প্রাণের দাবি। আওয়ামী লীগ সরকার শুধু একটি বিশ্ববিদ্যালয় নয়, এ জেলার মানুষের স্বপ্ন পুরণ করতে যাচ্ছে। সরকারের এই সিদ্ধান্ত জেলার মানুষের শিক্ষার সুযোগ সম্প্রসারণের সাথে কৃষির আধুনিকায়ন ও দারিদ্র বিমোচনে ভূমিকা রাখবে। পাশাপাশি অর্থনৈতিক সূচকে কুড়িগ্রাম জেলার গুরুত্ব বেড়ে যাবে।

চট্টগ্রাম দক্ষিন পতেঙ্গায় এক খতনা অনুষ্ঠানের আয়োজন

চট্টগ্রাম দক্ষিন পতেঙ্গায় এক খতনা অনুষ্ঠানের আয়োজন
চট্টগ্রাম দক্ষিন পতেঙ্গায় এক খতনা অনুষ্ঠানের আয়োজন
বেলাল উদ্দিন সিনিয়র স্টাফ রিপোর্টার :চট্টগ্রামের দক্ষিন পতেঙ্গা ৪১ নং ওয়ার্ডে, ডিভাইস  কসমেটিক খতনা সেন্টারের উদ্যোগে – দিনব্যাপী এক খতনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।
উক্ত খতনা অনুষ্ঠানে  সভাপতিত্ব  করেন, হাজি মোহাম্মদ ইব্রাহিম খান। উদ্বোধক ছিলেন,  চট্টলার স্বনামধন্য কসমেটিক সার্জন, ফ্যামিলি মেডিসিন ও ডায়াবেটিস বিশেষজ্ঞ ডা.এম.ওয়াই.এফ.পারভেজ। অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, যথাক্রমে দঃ পতেঙ্গা ৪১নং ওয়ার্ডের সাবেক কাউন্সিলর ছালেহ আহামদ চৌধুরি, সাবেক কমিশনার হাজি ইসমাইল হোসেন, কাউন্সিলর প্রার্থী আলহাজ্ব আলমগীর হাসান, ডা.ইকবাল হোসেন ইমন, কৃষকলীগ নেতা জাবেদ হোসেন, সমাজসেবক হাজি জিয়াউদ্দিন সোহেল, সমাজ সেবক ইকবাল হোসেন, প্রাচিকসর বর্তমান সভাপতি মারুফ রহমান মনূ ও সাবেক সভাপতি প্রভাষক হাকিম মোঃ সেলিম রেজা, ডা.জামাল উদ্দিন, ডা.ইলিয়াছ প্রমুখ। সন্চালকের ভূমিকায় ছিলেন, ডিভাইস কসমেটিক খতনা সেন্টারের পরিচালক হানিফ খান জিলানী।

পটিয়া ছনহরা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নৌকার মাঝি হতে চান আনোয়ার তালুকদার

পটিয়া ছনহরা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নৌকার মাঝি হতে চান আনোয়ার তালুকদার
আনোয়ার তালুকদার  


সেলিম  চৌধুরী পটিয়াঃ- আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ  নির্বাচনে পটিয়া উপজেলার ছনহরা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে নৌকা প্রতিক নিয়ে নির্বাচন করতে চান আনোয়ার তালুকদার। সে ছনহরা ইউনিয়ন আওয়ামী যুবলীগের সভাপতি  ও সভাপতি বাইতুন নূর জামে মসজিদ আলমদারপাড়া এবং সভাপতি চট্টগ্রাম পুস্তক বিক্রেতা সমবায় সমিতি ছাড়াও সাধারণ সম্পাদক বাংলাদেশ পুস্তক প্রকাশক ও বিক্রেতা সমিতি কোতোয়ালি থানা শাখা চট্টগ্রাম  তাছাড়াও  যুগ্মসাধারণ সম্পাদক গাউছিয়া কমিটি বাংলাদেশ  ছনহরা ইউনিয়ন শাখার দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি আরোও অনেক সামাজিক সংগঠনের সাথে জড়িত রয়েছেন।ইতিমধ্যে তিনি বিভিন্ন রকম সামাজিক, রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড এবং বিভিন্ন দিবসকে কেন্দ্র করে সরব রয়েছেন নির্বাচনী মাঠে।উন্নয়নের প্রতিশ্রুতি দিয়ে গণসংযোগ করছেন তিনি। আনোয়ার তালুকদার দৈনিক ইনফো বাংলা'কে  বলেন, আমাদের তালুকদার  পরিবার বহু বছর বছর ধরে ছনহরা ইউনিয়নে   মানুষের সেবা করে আসছেন।ঐতিহ্যবাহী তালুকদার পরিবারের  সঙ্গে ছনহরা ইউনিয়নের  মানুষের নিবিড় সম্পর্ক। ফলে এলাকার মানুষের সেবা করেছেন। আনোয়ার তালুকদার বলেন,

আমি পরিবারের ঐতিহ্য ধরে রাখতে ছনহরা ইউনিয়নের মানুষের জন্য কাজ করে আসছি। আমি বর্তমান এমপি জাতীয় সংসদের হুইপ আলহাজ্ব শামসুল হক চৌধুরীর  একজন একনিষ্ঠ কর্মী। তার মাধ্যমে এলাকার উন্নয়নে ভূমিকা রাখছি, সাধারণ মানুষের সেবা করে যাচ্ছি। তিনি বলেন, দলের সুখে-দুঃখে দলীয় সিদ্ধান্ত মোতাবেক কর্মী হয়ে কাজ করে আসছি। ছনহরা ইউনিয়নে বিভিন্ন স্কুলের ছাত্রছাত্রীদের বৃত্তি প্রদান, শীতার্ত দরিদ্র মানুষের মাঝে শীতের কাপড় বিতরণ, মাদক ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে সচেতনতামূলক প্রচারণাসহ বিভিন্ন সমাজসেবামূলক কাজ করেছি। দল আমাকে নৌকা মার্কা দিলে আমি বিপুল ভোটে নির্বাচিত হব। ছনহরা  ইউনিয়ন'কে মডেল আদর্শ ওয়ার্ড  হিসেবে গড়ে তুলব। তিনি জানান মানুষের মৌলিক অধিকার নিশ্চিত সাধারণ সেবা মানুষের দৌড় গৌড়ায় পৌঁছে দিতে আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে ছনহরা মানুষের সুখে দুঃখে পাশে থাকার প্রত্যায়ে ছনহরা ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে কাজ করছি।তিনি এব্যাপারে মাননীয় জাতীয় সংসদের হুইপ আলহাজ্ব শামসুল হক চৌধুরীর সুদৃষ্টি কামনা করেন।

বোয়ালখালী প্রেসক্লাব এর উদ্যােগে ফাতেহা ইয়াজদাহুম পালন

বোয়ালখালী প্রেসক্লাব এর উদ্যােগে ফাতেহা ইয়াজদাহুম পালন
বোয়ালখালী প্রেসক্লাব এর উদ্যােগে ফাতেহা ইয়াজদাহুম পালন

সেলিম চৌধুরী, স্টাফ রিপোর্টারঃ-বোয়ালখালী প্রেস ক্লাবের উদ্যোগে ফাতেহায়ে ইয়াজদাহুম পালিত হয়েছে।  সোমবার (২১ ডিসেম্বর) সকালে বোয়ালখালী প্রেস ক্লাব মিলনায়তনে

 এউপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠান ক্লাবের সভাপতি এসএম মোদ্দাচ্ছেরের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মো. সেকান্দর আলম বাবরের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত হয়।এতে প্রধান বক্তা ছিলেন পূর্ব কালুরঘাট রিজেন্ট জামে মসজিদের খতিব ও ছিপাতলী মাদ্রাসার আরবী প্রভাষক মুফতি মাওলানা মুহাম্মদ তোহা হোসাইন। অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বোয়ালখালী নিউজ২৪ ডট কম সম্পাদক আবুল ফজল বাবুল, আলোকিত বোয়ালখালীর পরিচালক আল সিরাজ ভান্ডারী, সাপ্তাহিক বাণিজ্যিক রাজধানী সম্পাদক আলমগীর চৌধুরী রানা।এতে উপস্থিত ছিলেন দৈনিক পূর্বদেশ বোয়ালখালী প্রতিনিধি রাজু দে, দৈনিক বণিকবার্তা বোয়ালখালী প্রতিনিধি পূজন সেন, দৈনিক সংবাদ বোয়ালখালী প্রতিনিধি দেবাশীষ বড়ুয়া রাজু, দৈনিক জনকণ্ঠ বোয়ালখালী প্রতিনিধি মুহাম্মদ মহিউদ্দীন, ব্যবসায়ী মো. ওসমান প্রমুখ। মিলাদ-কেয়াম করেন বোয়ালখালী ইনকিলাব প্রতিনিধি এমএস এমরান কাদেরী।

মেজর অবঃ সিনহা হত্যা মামলার চার্জশিট গ্রহণ সিফাতকে অব্যাহতি

মেজর অবঃ সিনহা হত্যা মামলার চার্জশিট গ্রহণ সিফাতকে অব্যাহতি



সেলিম চৌধুরী, স্টাফ রিপোর্টারঃ-কক্সবাজারের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট তামান্না ফারহার আদালতে  সোমবার (২১ ডিসেম্বর) সকালে সেনাবাহিনীর  মেজর (অব.) সিনহা মো. রাশেদ খান হত্যা মামলার দাখিলকৃত নথি গৃহীত হয়। পরে একজন পলাতক আসামি সাগর দেবের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করা হয়।কক্সবাজার দায়রা জজ আদালতের পিপি ফরিদুল আলম এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান হত্যা মামলার অভিযোগপত্র নিয়ে আজকে আদালতে শুনানি হয়। শুনানি শেষে আদালত অভিযোগপত্র গ্রহণ করে এবং সিনহার টিমে থাকা সিফাতের বিরুদ্ধে পুলিশ বাদী হয়ে যে দু'টি মামলা করেছিল ঐ দুই মামলা থেকে তাকে অব্যাহতি দেয়। এর আগে গত ১৩ ডিসেম্বর কক্সবাজার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট তামান্না ফারাহর আদালতে বরখাস্তকৃত ওসি প্রদীপসহ ১৫ জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট জমা দেয় র‌্যাব।

প্রসঙ্গত, গত ৩১ জুলাই রাতে কক্সবাজার জেলার টেকনাফের মারিশবুনিয়া পাহাড়ে ভিডিওচিত্র ধারণ করে মেরিন ড্রাইভ দিয়ে কক্সবাজারের হিমছড়ি এলাকার নীলিমা রিসোর্টে ফেরার পথে টেকনাফ শামলাপুর তল্লাশিচৌকিতে গুলিতে নিহত হন মেজর (অব.) সিনহা মো. রাশেদ খান।এ সময় পুলিশ সিনহার সঙ্গে থাকা সহযোগী সিফাতকে আটক করে কারাগারে পাঠায়। পরে রিসোর্ট থেকে শিপ্রাকে আটক করা হয়। দু'জনই বর্তমানে জামিনে মুক্ত।ঐ ঘটনায় টেকনাফের সাবেক পরিদর্শক লিয়াকত ও ওসি প্রদীপসহ অন্যান্য পুলিশ সদস্য এবং পুলিশের করা মামলার তিন সাক্ষী কারাগারে রয়েছেন।বর্তমানে ওসি প্রদীপ কুমার দাশ দুদকের একটি মামলায় চট্টগ্রাম কারাগারে রয়েছেন। অন্য আসামিরা রয়েছেন কক্সবাজার জেলা কারাগারে।এ ঘটনায় ১৪ আসামির মধ্যে ওসি প্রদীপ কুমার দাশ ও কনস্টেবল রুবেল শর্মা ছাড়া অন্য ১২ আসামি তদন্ত সংস্থা র‌্যাবের মাধ্যমে আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। সিনহা রাশেদ হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় দেশজুড়ে তোলপাড় সৃষ্টি হয়। র‌্যাবের তদন্তে বেরিয়ে আসে ওসি প্রদীপের মাদক বাণিজ্যের বিষয় জেনে ফেলার কারণে সিনহা রাশেদকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়। সারাদেশের মানুষ মেজর অবঃ সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ হত্যার বিচার দাবিতে সোচ্চার তারা এ বিচার দাবি নিশ্চিত করতে সরকার হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

শার্শার কায়বা ইউনিয়ন যুবলীগের ত্রী-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত

শার্শার কায়বা ইউনিয়ন যুবলীগের ত্রী-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত



আজহারুল ইসলাম সাদী, স্টাফ রিপোর্টারঃ যশোর জেলার শার্শা উপজেলার ৭ নং কায়বা ইউনিয়ন এর ৩ নং ওয়ার্ড যুবলীগের ত্রী-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। 

সোমবার (২১ ডিসেম্বর) বিকালে পাড়ের কায়বা সরকারী প্রাথমীক বিদ্যালয়ের মাঠে অনুষ্ঠিত উক্ত সম্মেলনে, প্রধান অতিথি উপস্থিত ছিলেন, কায়বা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও কায়বা ইউপি চেয়ারম্যান হাসান ফিরোজ আহমেদ টিংকু।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, কায়বা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক, শরিফুল ইসলাম। 
উপস্থিত ছিলেন, কায়বা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নাসিরুদ্দিন, আব্দুল জব্বার, ৩ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য রফিকুল ইসলামসহ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ যুবলীগসহ বিভিন্ন আওয়ামী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। 

প্রধান অতিথি ফিরোজ আহমেদ টিংকু সম্মতিক্রমে ৩নং কায়বা ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি হিসেবে মোঃ মশিয়ার রহমান ও সাধারণ সম্পাদক হিসেবে মোঃ সোহাগ হোসেন এর নাম ঘোষণা করেন।

প্রধান অতিথি তার বক্তৃতায় বলেন, বর্তমান আওয়ামী লীগ সরকারের আমলে এ এলাকাসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে।