আশাশুনির গর্ব কাবাডি দলের অধিনায়ক জাকির হোসেন

আহসান উললাহ বাবলু আশাশুনি সাতক্ষীরা প্রতিনিধি:আশাশুনি উপজেলার গর্ব বাংলাদেশ জাতীয় কাবাডি দলের অধিনায়ক জাকির হোসেন। যার হাত ধরে জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পর্যায় থেকে কাবাডি খেলার অনেক পুরষ্কার অর্জন করেছে বাংলাদেশ। জানাগেছে, উপজেলার কুল্যা ইউনিয়নের কচুয়া (বালিয়াঘাটা) গ্রামের রমজান আলী শিকারীর ছেলে জাকির হোসেন একই ইউনিয়নের আগরদাড়ী রহিমীয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে ২০০১ সালে এসএসসি পাশ করেন। এরপর তিনি তার বড় ভাই তৎকালীন বিডিআর সদস্য মিজানুর রহমান এর হাত ধরে ১৪ সেপ্টেম্বর'২০০২ সালে বিডিআর এর সিপাহী হিসাবে যোগদান করেন। যোগদানের পর বিডিআর এর হয়ে তিনি ভলিবল ও হ্যান্ডবল খেলতেন। এসময় তার বড় ভাই মিজানুর রহমান বিডিআর এর হয়ে কাবাডি খেলতেন। তার বড় ভাই জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে অনেক ম্যাচ খেলেছেন। যেটি দেখে ও তার বড় ভাইয়ের অনুপ্রেরণায় জাকির হোসেন ২০০৭ সালে বিডিআর এর ইউনিট লেভেলের কাবাডি দলে যোগ দেন। এরপর তার ভাই ২০০৯ সালে দশের চক্রে পড়ে বিডিআর বিদ্রোহে জড়িয়ে জেলে যান। তারপরও থেমে থাকেনি কাবাডিয়ান জাকির হোসেন এর প্রতিভা। তিনি বিজিবির হয়ে বিভিন্ন লীগ ও টুর্নামেন্ট খেলতে খেলতে ২০১৩ সালে বিজিবি এর কাবাডি দলের জুনিয়র অধিনায়ক হন। এরপর ২০১৫ সাল থেকে অধ্যাবধি পর্যন্ত তিনি বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) দলের অধিনায়ক ও টিম ইনচার্জ এর দ্বায়িত্ব পালন করে আসছেন। এদিকে, বিজিবি সদস্য জাকির হোসেন ২০১১ সালে নিজের দলের গন্ডি পেরিয়ে বাংলাদেশ জাতীয় কাবাডি দলে খেলার সুযোগ পান। এরপর থেকে তিনি অধ্যাবধি পর্যন্ত জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে বাংলাদেশের হয়ে মাঠ মাতিয়ে চলেছেন। তিনি বাংলাদেশ জাতীয় দলের সহ-অধিনায়ক হিসাবে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে ২০১৪ সালে এশিয়ান গেমস, ২০১৬ সালে সাফ গেমস, ২০১৮ সালে এশিয়ান গেমস ও ওয়ার্ল্ড কাপ এ অংশ নেন। এরপর অধিনায়ক হিসাবে তিনি ২০১৭ ও ২০১৯ সালে এশিয়ান গেমস এ দলের নেতৃত্ব দেন। এছাড়াও তিনি ভারতসহ বিভিন্ন দেশে ও বাংলাদেশে বিভিন্ন লীগ পর্যায়ের টুর্নামেন্টে অংশ গ্রহন করেছেন। মজার বিষয় হলো, জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ের তিনি যতগুলো টুর্নামেন্টে অংশগ্রহন করেছেন তার অধিকাংশতে তিনি ম্যান অব দ্যা ম্যাচ ও ম্যান অব দ্যা টুর্নামেন্ট নির্বাচিত হন। ছাড়াও তার দল জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পর্যায় থেকে রৌপ্য ও গোল্ড অর্জন করেছে বহুবার। খেলাধুলার পাশাপাশি পড়াশুনাও চালিয়েছেন তিনি। ২০২০ সালে বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এইচএচসি পাশ করেন কাবাডিয়ান জাকির হোসেন। এক ছেলে সন্তানের জনক জাকির হোসেন বর্তমানে ১ বিজিবি, রাজশাহী এর অধীনে রংপুর বিজিবি রিজিওন এ কর্মরত আছেন। আশাশুনির গর্ব কাবাডিয়ান জাকির হোসেন দৈনিক দৃষ্টিপাতকে জানান, আগামীতে তিনি অবসরে যাওয়ার পর তার গ্রামেই একটি কাবাডি ক্লাব স্থাপন করবেন তিনি। যে ক্লাবের মাধ্যমে তিনি বিনামূল্যে প্রশিক্ষণ প্রদান করে বিভিন্ন পর্যায়ে কাবাডির খেলোয়ার ছড়িয়ে দিতে চান। এছাড়াও তার একমাত্র সন্তান সীমান্ত ইসলাম শিমুকেও কাবাডি রপ্ত করাচ্ছেন, তাকেও আন্তর্জাতিক মানের কাবাডি খেলোয়ার বানাতে চান তিনি। তিনি আরও বলেন, আমার উপজেলার তরুন প্রতিভা খঁুজে বের করে আমি যদি প্রশিক্ষণ প্রদানের মাধ্যমে জাতীয় ও আন্তর্জাতিক বিভিন্ন স্তরে কাবাডি খেলোয়োর হিসাবে স্থান করিয়ে দিতে পারি সেটাই হবে আমার স্বার্থকতা। এসময় তিনি বাংলাদেশ জাতীয় কাবাডি দল ও বিজিবি কাবাডি দল এর সকল সদস্যের জন্য সকলকে দোয়া করার আহবান জানান।

শেয়ার করুন
পূর্ববর্তী পোষ্ট
পরবর্তী পোষ্ট