পটিয়ায় সাংবাদিকের উপর সন্ত্রাসী হামলাঃ ৪ জনের বিরুদ্ধে মামলা

পটিয়ায় সাংবাদিকের উপর সন্ত্রাসী হামলাঃ ৪ জনের বিরুদ্ধে মামলা

পটিয়া (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধিঃ- চট্টগ্রামের পটিয়ায় সাংবাদিক গোলাম কাদেরের উপর সন্ত্রাসী হামলার ঘটনা ঘটেছে রবিবার রাতে। আহত সাংবাদিক গোলাম কাদেরকে স্থানীয়রা উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হলে পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য চমেক হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে বলে জানা গেছে। হামলার জড়িতদের দ্রুত গ্রেফতারের দাবি জানিয়েছে, পটিয়ার বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামাজিক ও মানবাধিকার সংগঠনের প্রতিনিধিরা। সাংবাদিক গোলাম কাদের চট্টগ্রামের আঞ্চলিক দৈনিক চট্টগ্রাম মঞ্চ ও ঢাকা থেকে প্রকাশিত দৈনিক আলোকিত বাংলাদেশ এর  পটিয়া প্রতিনিধি হিসেবে কর্মরত। রবিবার রাতে প্রতিদিনের মত অফিসের কাজ শেষে বাড়ি ফেরার পথে সন্ত্রাসীরা পথে আটকে দা কিরিচ দিয়ে এলোপাতাড়ি হামলা চালায়। হামলার ঘটনায়  রাতে সাংবাদিক গোলাম কাদেরের ভাই নুর কাদের বাদী হয়ে পটিয়া থানায় আবছার উদ্দীন প্রকাশ কানা আবছার(৪৫), সাজ্জাদ হোসেন হিরু(৩৪), শাহজাহান মিন্টু(৪০), ইমরান হোসেন(২৮) ৫/৬ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন।অভিযোগ সূত্রে জানায়, রাত ৮টায় মোটরসাইকেল নিয়ে বাড়ি ফেরার পথে পটিয়া সদরের গৌবিন্দারখীল এলাকার গোলাম সওদাগরের বাড়ি ব্রীজের সামনে এই হামলার ঘটনা ঘটে। এ বিষয়ে মামলার বাদী ও সাংবাদিক গোলাম কাদেরের ভাই নুর কাদের বলেন, আমাদের সাথে প্রতিপক্ষের সাথে জায়গা জমি সংক্রান্ত বিরোধ চলে আসছিল। এ নিয়ে একাধিবার বৈঠকও হয়েছে, তারা কোন আইন আদালত মানবে না কোন বৈঠকও মানবে না, তারা পূর্ব শত্রুতার জের ধরে আমার ভাইকে পরিকল্পিতভাবে হামলা চালিয়ে হত্যার চেষ্ঠা করেন বলে দাবি করেন এবং ইতিপূবে আমার ভাইকে খুন করার পরিকল্পনা বিষয় নিয়ে থানায় দুইটি জিডি করেন আর কল ভয়েজ রেকড ওসিকে জমা দেন।। হামলার খবর পেয়ে হাসপাতালে দেখতে যান  সোমবার দুপুরে বাংলাদেশ যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ বদিউল আলম, পটিয়া পৌর মেয়র আইয়ুব বাবুল, প্রবীন সাংবাদিক হারুনর রশীদ সিদ্দিকী, কাউন্সিলর বুলবুল আকতার, পটিয়া পৌরসভা যুবলীগের সাবেক আহ্বায়ক জমির উদ্দীন, রিভিউহিউম্যান রাইটস উপজেলা সাধারণ সম্পাদক আবু তাহের চৌধুরী, সহ সভাপতি সাইফুর রহমান ও দৈনিক জনতা'র সাংবাদিক সেলিম চৌধুরী,  দৈনিক সংবাদ  এর সাংংবাদি নজরুল ইসলাম, দপ্তর সম্পাদক মো. হারুনসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক,সামাজিক, সাংস্কৃতিক, ক্রীড়া সংগঠনের প্রতিনিধিরা হামলায় গ্রেফতারের দাবি জানান। এ বিষয়ে থানার অফিসার ইনচার্জ রেজাঊল করিম মজুমদার বলেন, বিষয়টি গুরুত্বসহকারে তদন্ত চলছে, তবে সাংবাদিক পরিবারের সাথে যারা হামলা চালিয়েছে তাদের সাথে জায়গা জমি সংক্রান্ত বিরোধ রয়েছে বলে তিনি জানান। দৈনিক পুর্ববকোণ ও দৈনিক ইক্তেফাক এর প্রবীন সাংবাদিক হারুন অর রশীদ সিদ্দিকী জানান, 

অবিলম্বে  সাংবাদিক গোলাম কাদের উপর সন্রাসী হামলাকারীদের গ্রেপ্তারের দাবি জানান অন্যথায় সাংবাদিক সমাজ আন্দোলনে যেতে বাধ্য হবে বলে তিনি কঠোর হুশিয়ারী উচ্চারণ করেন।

পিরোজপুরের ইন্দুরকানীতে ওড়না পেঁচিয়ে যুবকের মৃত্যু

পিরোজপুরের ইন্দুরকানীতে ওড়না পেঁচিয়ে যুবকের মৃত্যু

মিঠুন কুমার রাজ, স্টাফ রিপোর্টারঃ ইন্দুরকানীতে ঘরের বারান্দায় ওড়না পেঁচিয়ে মোঃ হাফিজুল ইসলাম নামে এক যুবক আত্মহত্যা করেছে। আজ সোমবার সকাল ৮ টা ১০ মিনিটে পরিবারের লোকজন তার কোনো সাড়া শব্দ না পেয়ে বারান্দায় তাকে ডাকতে আসলে রুমের পাশে আড়ার সাথে ওড়মা পেঁচানো অবস্তায় তার ঝুলন্ত লাশ দেখতে পেয়ে ডাক চিৎকার শুরু করেন। পরে পরিবারের লোকজন তাকে নামিয়ে পিরোজপুর জেলা হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। পরিবারের কাছে জানতে চাইলে তারা বলেন ছোটবেলা থেকে তার সাথে জিনের আছড় ছিল। অনেক চেষ্টা করার পরেও তাকে ছাড়াতে পারেনি। পরে সবার পরামর্শ ছেলেকে বিয়ে দিয়েছি কিন্তু শেষ রক্ষা হল না। হাফিজুলের পরিবারে তার তিনটি বোন থাকলেও তিনি তাদের একমাত্র ভাই। হাফিজুলের মৃত্যুর পর তার ঘর থেকে একটি চিরকুট পাওয়া যায়। তাতে লেখা দেখা যায়।
তার মৃত্যুর জন্য কেউ দায়ী নয় বলে তিনি উল্লেখ করেন।
এ ছাড়া তার মরদেহটি যাতে ময়নাতদন্ত না করা হয়, সে জন্যও অনুরোধ করেন। তার কাছে চারজন লোক ৮১ হাজার টাকা পাবে, যা তার ব্যবহৃত মোটরসাইকেলটি বিক্রি করে পরিশোধ করতে বাবার প্রতি অনুরোধ রেখে যান। পরিবারের সবার কাছে তিনি ক্ষমা চেয়েছেন ওই সুইসাইড নোটে।


ঘটনার পর ইন্দুরকানী থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। এদিকে তার মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য পিরোজপুর জেলা মর্ঘে প্রেরণ করে পরে তাকে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয় । হাফিজুল ইসলাম শহীদ শেখ ফজলুল হক মনি সেতুর টোলে অস্থায়ী চাকরি করতেন। 

তার চিরকুটের লেখা হুবহুঃ
১. সবাই আমাকে ক্ষমা করে দিয়েন আমার মৃত্যুর জন্য কেউ দায়ী নয়।
২. দয়া করে আমার লাশটা ময়না তদন্ত করবেন না।
৩. বাবা মা আমার জন্য অনেক কষ্ট করেছেন বিনিময় তাদের কিছুই দিতে পারেনি।
৪. আমার এমন পরিণতি হবে তা কখনো ভাবিনি আপনারা আমার কোনও চাওয়া অপূর্ণ রাখেনি তবুও আমার এমন পরিণতি হলো কেন বাবা-মা আপনারা আমাকে মাফ করে দিয়েন।
৫. বোনেরা আমার ভালো থেকো আমার জন্য দোয়া করো। 
৬. বড় ভাইয়া আমাদের পরিবারকে নিজের মতো দেখে রাইখেন ।
আমার গাড়িটা বিক্রি করে টাকাগুলো দিয়ে দিয়েন । 
পাড়েরহাট মামুন জুতার দোকান_ ৪০,০০০
হাসান ভাই_২০০০০
আন্টি._১০০০০
শান্ত__১১০০০।
পরে তাকে দাফন দেন পরিবারের লোকজন।

বাবা-মায়ের ওপর অভিমান করে ৭ম শ্রেণি ছাত্রীর আত্মহত্যা

বাবা-মায়ের ওপর অভিমান করে ৭ম শ্রেণি ছাত্রীর আত্মহত্যা

মো. মিজানুর রহমান মিজান, চিরিরবন্দর, দিনাজপুর, প্রতিনিধিঃ দিনাজপুরের খানসামা উপজেলায় বাবা-মায়ের প্রতি অভিমান করে মারিয়া খাতুন (১৩) নামে ৭ম শ্রেণীর এক স্কুল ছাত্রী আত্বহত্যা করেছে। মৃত স্কুল ছাত্রী ভেড়ভেড়ী ইউনিয়নের তেবাড়িয়া চৌধুরীপাড়ার মোহাজ্জের রহমানের ছোট মেয়ে ও সখিনা ফজলুল হক বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ৭ম শ্রেণির ছাত্রী।

পুলিশ ও এলাকাবাসীর সাথে কথা বলে জানা যায়, সোমবার সকালে মারিয়ার বাবা-মা তাকে মারধর ও বকাবকি করে। পরে বাবা-মা ক্ষেতে কাজ করতে গেলে মারিয়া তার শয়নকক্ষে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করে। তার মা বাড়িতে ফিরে এসে তাকে ডাকার পর সাড়া না পেয়ে তার শয়ন কক্ষে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পেয়ে চেঁচামেচি করে। পরে বাড়ির আশেপাশের লোকজন মারিয়াকে নামিয়ে পাকেরহাট হাসপাতালে নিয়ে গেলে ডিউটিরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করে।  এ বিষয়ে ওসি শেখ কামাল হোসেন বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ ময়নাতদন্তের জন্য দিনাজপুর এম.আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। প্রাথমিক তদন্ত ও ময়নাতদন্তের রির্পোট আসার পর আত্মহত্যার প্ররোচণাকারী হিসবে কারো সম্পৃক্ততা পাওয়া গেলে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

গফরগাঁওয়ে সন্ত্রাসী হামলায় যুবলীগ নেতা আহত

গফরগাঁওয়ে সন্ত্রাসী হামলায় যুবলীগ নেতা আহত


আশরাফ আলী ফারুকী স্টাফ রিপোর্টারঃ  ময়মনসিংহের গফরগাঁওয়ে সন্ত্রাসীদের হামলায় লংগাইর ইউনিয়ন যুবলীগ নেতা ও ব্যবসায়ী স্বপন মিয়া (৪০)কে দেশীয় অস্ত্র দিয়ে এলাপাথারি কুপিয়ে গুরুতর জখম করেছে একদল সন্ত্রাসী। লংগাইর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ নেতৃবৃন্দ এ ঘটনার জন্য বিএনপির নেতাকর্মীদের দায়ী করেছে। ঘটনাটি ঘটেছে সোমবার সকাল ৯টার দিকে উপজেলার লংগাইর ইউনিয়নের গোলাবাড়ি গ্রামে।
প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, সোমবার সকাল ৯টার দিকে যুবলীগ নেতা স্বপন গোলাবাড়ি গ্রামের নিজ বাড়ি থেকে লংগাইর ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ে যাওয়ার সময় গোলাবাড়ি বাইগারটেক রাস্তার মোড়ে লংগাইর ইউনিয়ন বিএনপি নেতা আমির ও কালামের ৭/৯ জনের একদল সশস্ত্র লোক স্বপনের পথরোধ করে। তাকে মোটরসাইকেল থেকে টেনে টেনে-হিচঁড়ে নামিয়ে রামদা, ডেগার দিয়ে এলাপাথারি কুপিয়ে গুরুতর জখম করে মৃত ভেবে রাস্তায় ফেলে রেখে চলে যায়। পথচারীরা তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। অবস্থার অবনতি তাকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে।পাগলা থানার ওসি মোঃ রাশেদুজ্জামান বলেন , থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

রাজারহাটে উমরমজিদ ইউনিয়নে লকডাউন সফল করতে সচেতনতা ও মাস্ক বিতারণ

রাজারহাটে উমরমজিদ ইউনিয়নে লকডাউন সফল করতে  সচেতনতা ও মাস্ক বিতারণ

মোঃআকাশ সরকার,কুড়িগ্রাম প্রতিনিধিঃ করোনা মোকাবিলায় সরকার ঘোষিত লক ডাউনের ১ম দিনের কর্মসূচী সফল করতে কুড়িগ্রামের রাজারহাট উপজেলায় উমরমজিদ ইউনিয়নের তরুন নেতা  মোঃ জহুরুল ইসলাম তালুকদার (ময়নাল)। সংগ্রামী সাধারণ সম্পাদক,৬নং উমরমজিদ ইউনিয়ন।বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ।তার উদ্যোগে আজ   ফরকেরহাট  বাজারে ও অপেক্ষাকৃত অধিক জনসমাগম এলাকায় সাধারন মানুষদের  মাঝে সচেতনতা ব্যাপারে অবহিত করেন।  এ সময় তিনি  জনগনকে স্বাস্থ্য বিধি মেনে মাস্ক পরিধানের কথা বলেন। এবং লক ডাউনের সকল নির্দেশনা মেনে চলার আহ্বান জানান। পরে তিনি সবার কাছে মাস্ক বিতারণ করেন।

ঠাকুরগাঁওয়ে আগুনে পুড়ে ছাই ২২টি বসতঘর

ঠাকুরগাঁওয়ে আগুনে পুড়ে ছাই ২২টি বসতঘর


কলিন চন্দ্র (ইতু) রায়,ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধিঃঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার বড়গাঁও ইউনিয়নে আগুনে পুড়ে ৯টি পরিবারের ২২টি ঘড়বাড়ি পুড়ে ছাই হয়ে গেছে।রোববার(০৪ এপ্রিল) রাতে সদর উপজেলার বড়গাঁও ইউনিয়নের চমেশ্বরী গ্রামে আব্দুল হাইয়ের বাসার রান্নাঘর থেকে এই আগুনের ঘটনাটি ঘটে।

সোমবার(০৫ এপ্রিল) সকালে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার আব্দুল্লাহ আল মামুন।এছাড়া ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মাঝে ইতিমধ্যে শুকনো খাবার ও কম্বল দিয়েছেন তিনি।

ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের স্বজনেরা বলেন,রাতে খাবার পরে সকলে ঘুমিয়ে পড়ে সকলে। হঠাৎ করেই আব্দুল হাইয়ের বাসার রান্নাঘর থেকে আগুন লেগে যায়। মুহুর্তের মধ্যে আগুনটি ছড়িয়ে গিয়ে সকলের বাসায় লেগে যায়। ফায়ার সার্ভিসকে খবর দেয়া হলে তারা এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। এর মধ্যেই সবকিছু পুড়ে ছাই হয়ে যায়। এতে প্রায় লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে জানান তারা।

ক্ষতিগ্রস্থ শহিদুল ইসলাম বলেন, রাতে চাচাতো ভাই আব্দুল হাইয়ের বাসার রান্নাঘর থেকে আগুন লাগে। খুব দ্রুত আগুন ছড়িয়ে আমাদের সকলের বাড়িতে লেগে যায়। আগুনে ঘড়ে থাকা প্রতিটি জিনিস পুড়ে ছাই হয়ে যায়।  শুধু গরু-ছাগল ছাড়া কোন কিছু বাঁচানো আমাদের পক্ষে সম্ভব হয়নি। আজ আমরা সকলে খোলা আকাশের নিচে বসে আছি। একেবারে নি:স্ব। আগুনের পুড়ে আমাদের প্রায় ৮ থেকে ৯ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে।বড়গাঁও ইউনিয়নের চেয়ারম্যান প্রভাত কুমার সিং জানান,ঘটানাটি শুনার পড়ে সেখানে গিয়ে ক্ষতিগ্রস্থদের নামের তালিক নেয়া হয়েছে। ইতিমধ্যে সেই তালিকা উপজেলা নির্বাহী অফিসারের বরাবরে দেয়া হয়েছে।

ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার নির্বাহী অফিসার আব্দুল্লাহ মামুন বলেন,ইতিমধ্যে ক্ষতিগ্রস্থদের মাঝে কিছু শুকনো খাবার দেয়া হয়েছে। এছাড়াও ক্ষতিগ্রস্থদের মাঝে আর্থিক সহযোগিতা করা হবে আশ্ববাস দিয়েছেন তিনি।

চোর পুলিশ খেলার মত কুড়িগ্রামে পালিত হচ্ছে লকডাউন

চোর পুলিশ খেলার মত কুড়িগ্রামে পালিত হচ্ছে লকডাউন

কুড়িগ্রাম  প্রতিনিধিঃ কুড়িগ্রামে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর লোকজনকে দেখলেই বন্ধ করে দেয়া হচ্ছে দোকানের সাটার। আবার মোবাইল টিমের বহর চলে গেলেই সাটার খুলছেন ব্যবসায়ীরা। এরকম ঢিলেঢালা ভাবে পালিত হচ্ছে কুড়িগ্রামে লকডাউন।লক ডাউনকে লক্ষ্য করে সোমবার (৫ এপ্রিল) সকাল থেকে শহরের গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর তোড়জোড় লক্ষ্য করা গেলেও দুপুরের পর কিছুটা শিথিল অবস্থা লক্ষ্য করা যায়। এসময় যত্রতত্র লোক সমাগম, যানবাহন চলাচল ও দোকানপাট খোলা লক্ষ্য করা যায়।


সোমবার সকালে জেলা প্রশাসন থেকে অভিযান পরিচালনা করার সময় মাস্ক না পরার অপরাধে দণ্ডবিধি আইন ১৮৬০/২৬৯ ধারায় জেলা শহরে ১১জন ব্যক্তির নামে ১১টি মামলা এবং ১ হাজার ২৫০ টাকা জরিমানা আদায় করা হয়। এসময় মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করেন জেলা প্রশাসনের এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট তানজিলা তাসনিম। তার সঙ্গে ছিলেন সদর উপজেলার স্যানিটারি অফিসার মোঃ রফিকুল ইসলামসহ পুলিশের একটি টিম।


অপরদিকে জেলা প্রশাসনের পাশাপাশি পুলিশ বিভাগ শহরের বড় বড় হাট-বাজারগুলোতে হ্যান্ড মাইকের মাধ্যমে সতর্কমূলক বার্তা প্রচারণা করে। দুপুরে সরকারি নিয়ম উপেক্ষা করে যাত্রী নিয়ে দুরপাল্লার বাস চলাচলের অপরাধে শহরের কাঁঠালবাড়ী এলাকা থেকে একটি যাত্রীসহ বাস জব্দ করা হয়েছে বলে সদর থানার অফিসার ইনচার্জ খান মোঃ. শাহরিয়ার নিশ্চিত করেছেন।

করোনা ভাইরাসের টিকা সম্পর্কে সিভিল সার্জন ডা. হাবিবুর রহমান জানান, কুড়িগ্রামে প্রাপ্ত ৬০ হাজার ডোজের মধ্যে ৪৩ হাজার ৮২৫জনকে ডোজ প্রদান করা হয়েছে। বর্তমানে ডোজ আছে ১৪ হাজার ৯৯০টি এবং নষ্ট হয়েছে ১ হাজার ১৭৫টি। প্রথম ডোজ অব্যাহত থাকার পাশাপাশি আগামী ৮ এপ্রিল থেকে দ্বিতীয় ডোজের কার্যক্রম শুরু করা হবে বলে এই শীর্ষ কর্মকর্তা জানান। এছাড়াও এই কর্মকর্তা জানান, আগমি ২৪ এপ্রিল পর্যন্ত সংরক্ষক টিকাগুলোর কার্যক্ষমতা রয়েছে।

লকডাউন পরিস্থিতি নিয়ে জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ রেজাউল করিম জানান, প্রথমদিন লোকজনকে সতর্ক করে দেয়া হচ্ছে। আগামিকাল থেকে কঠোরভাবে এটি মানা হবে। অমান্য করলে মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে জরিমানা করা হবে।

শার্শার বাগআঁচড়ায় ১৪৪ ধারা অমান্য করে এক স্কুল শিক্ষক প্রতিবেশির জমি দখল করেছে

শার্শার বাগআঁচড়ায় ১৪৪ ধারা অমান্য করে এক স্কুল শিক্ষক  প্রতিবেশির জমি দখল করেছে

আব্দুল জব্বার, স্টাফ রিপোর্টার।।যশোরের শার্শা উপজেলার বাগআঁচড়ার সোনাতনকাঠি গ্রামে আদালতের ১৪৪ ধারা ভঙ্গ করে, জোর পূ্র্বক পাকা ইট দিয়ে সীমানা প্রাচীর নির্মান করে প্রতিবেশী মতিয়ার রহমানে যাতায়াতের পথ বন্ধ করার পাশাপাশি মতিয়ার কে নিজের পৈত্রিক সম্পত্তি থেকে উচ্ছেদের জন্য জোর পায়তারা চালাচ্ছে আক্তারুজ্জামান নামে এক স্কুল শিক্ষক।

স্কুল শিক্ষক আক্তারুজ্জামান ঐ গ্রামের
মৃত ইউসুফ আলীর ছেলে। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার বাগআঁচড়া ইউনিয়নের সোনাতনকাটি গ্রামে।জানা গেছে, সোনাতনকাটি গ্রামের মৃত মোবারক হোসেনের ছেলে মতিয়ার রহমান, বসতপুর ১২৪ মৌজার ১৭০৩ খতিয়ানের সাবেক দাগ নং ৫০০৭, হালদাগ ৭০৮২ দাগে ৭১ শতক জমির ভিতরে ১০ শতক ওয়ারেশ সুত্রে প্রাপ্ত হন।

আর দুই বোন জবেদা ও জাহানারা তাদের পিতার ওয়ারেশ সুত্রে একই দাগে তাদের ওয়ারেশ সূত্রে প্রাপ্ত ৫ শতক করে, মোট
১০ শতক জমি ভাই মতিয়ার রহমানের কাছে বিক্রি ও  কবলা দলিল করে লিখে দেন।

উপরোক্ত মোট ২০ শতক জমির ভিতরে মতিয়ার রহমান ৫০০৮ দাগে ৫ শতক জমি ভোগদখল করে আসছে। আর ৫০০৭ দাগে ১৫ শতক জমি ৭১ শতক জমির ভিতরে আছে। এই ১৫ শতক জমি নিজের ভোগ দখলে নেওয়ার জন্য মতিয়ার রহমানের স্ত্রী রাবেয়া খাতুন, পি -১০৬/২১ বিজ্ঞ আদালতের শরনাপন্ন হয়ে একটি অভিযোগ দায়ের করেন।

আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে বিজ্ঞ অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আদালত বিষয়টি আমলে নিয়ে মোকদ্দমা ফৌঃ কাঃ ধারা মোতাবেক শার্শা থানাকে বিষয়টি আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য অবহিত করেন। শার্শা থানা পুলিশ বিষয়টি আমলে নিয়ে সরেজমিন তদন্ত করে তদন্ত প্রতিবেদন বিজ্ঞ অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে প্রেরণ করেন।

তদন্ত প্রতিবেদনের ভিত্তিতে গত ১লা এপ্রিল বিজ্ঞ আদালত স্বারক নং ১০৮৮ তে উভয় পক্ষই স্ব স্ব অবস্থানে থেকে শান্তি শৃঙ্খলা বজায় রাখার জন্য, মতিয়ার রহমানের ১০শতক জমিতে ১৪৪ ধারা জারি করে। যার অনুলিপি বাদি রাবেয়া খাতুন স্বশরীরে উপস্থিত থেকে শার্শা থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বরাবর জমা প্রদান করে।

এ দিকে বিজ্ঞ আদলতের ১৪৪ ধারা নিষেধাজ্ঞা  ভংঙ্গ করে, সোমবার সকালে স্কুল শিক্ষক আক্তারুজ্জামান আদালতের ১৪৪ ধারা কে অমান্য করে মতিয়ার রহমানের যাতায়াতের পথ চিরতরে বন্ধ করার লক্ষে সীমানা প্রাচীর নির্মান কাজ শুরু করে। এসময় মতিয়ারের স্ত্রী রাবেয়া এগিয়ে এসে বাধা দিতে গেলে গালি গালাজ করে তাড়িয়ে দেয় বলে রাবেয়া সাংবাদিকদের জানান। 

কোন কুল কিনারা না পেয়ে রাবেয়া খাতুন শার্শা থানা পুলিশের শরানাপন্ন হলে, পুলিশ ঘটনাস্হলে এসে আদালতের ১৪৪ ধারার কাগজপত্র দেখে আক্তারুজ্জামানের সীমানা প্রাচীর নির্মানের কাজ বন্ধ করে দেয়।বিষয়টি সরেজমিন তদন্তপূর্বক মতিয়ার রহমান যাতে পৈত্রিক সম্পত্তি ফিরে পায় তার জন্য উদ্ধর্তন কতৃপক্ষের আশু জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

সরকারি মেডিকেল কলেজে চান্স পেয়েছে ঝিকরগাছার কৃতি সন্তান হাসিব

সরকারি মেডিকেল কলেজে চান্স পেয়েছে ঝিকরগাছার কৃতি সন্তান হাসিব

আফজাল হোসেন চাঁদ : ঢাকা মুগদা সরকারি মেডিকেল কলেজ এ চান্স পেয়েছে যশোরের ঝিকরগাছা পৌর সদরের কৃষ্ণনগর গ্রামের কৃতি সন্তান কাজী মুনতাকিম মাহমুদ হাসিব। সে ঝিকরগাছা বি.এম. হাইস্কুল ও খুলনা পাবলিক কলেজের শিক্ষার্থী ছিল। ঝিকরগাছা সম্মিলনী মহিলা ডিগ্রী কলেজের সহকারী অধ্যাপক, ঝিকরগাছা কাজী সমিতির সভাপতি ও দৈনিক ভোরের ডাক পত্রিকার ঝিকরগাছা প্রতিনিধি কাজী মাও. ইদ্রিস আলী ও নাজমুল ইসলাম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক দিল আফরোজ'র বড় ছেলে। এই সাফল্যের জন্য তার পিতা-মাতা সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষকদের নিকট কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন এবং কাজী মুনতাকিম মাহমুদ হাসিব'র জন্য সবার নিকট দোয়া প্রার্থনা করেছেন।

নওগাঁর আত্রাইয়ে কয়েলের আগুনে পুড়লো বসত ঘর ও ৩ গরু ছাগল:

 নওগাঁর আত্রাইয়ে কয়েলের আগুনে পুড়লো বসত ঘর ও ৩ গরু ছাগল:

 রাজশাহী ব্যুরোঃ নওগাঁ আত্রাইয়ে গোয়ালঘর ও শয়ন ঘরে অগ্নিকান্ডে ৩টি গরু ও একটি ছাগল অগ্নিদগ্ধ হয়ে মারা গেছে। সেই সাথে শয়ন ঘরে রক্ষিত চাল ডালসহ সমুদয় আসবাবপত্র পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। গত রোববার দিবাত রাত ১১ টার দিকে উপজেলার মধ্যবোয়ালিয়া গ্রামে ঘটনাটি ঘটেছে।

জানা যায়, ওই গ্রামের উজ্জল হোসেন প্রতি দিনের ন্যায় রোববার রাতে তার গোয়ালঘরে কয়েল জ্বালিয়ে নিজ শয়ন ঘরে ঘুমিয়ে যান। এ সময় কয়েলের আগুন থেকে গোয়ালঘরে অগ্নিকান্ডের সূত্রপাত হয়। মুহুর্তের মধ্যে গোয়ালঘর পুড়ে তার শয়ন ঘরে আগুন লেগে যায়। এ সময় তিনি চিৎকার করতে থাকলে স্থানীয় লোকজন এসে আগুন নেভানোর চেষ্টা করে। ততক্ষনে গোয়ালঘরে থাকা ৩ টি গরু ও একটি ছাগল অগিানদগ্ধ হয়ে মারা যায় এবং শয়ন ঘরের মালামাল পুড়ে ছাই হয়ে যায়।
এতে তার প্রায় ১০ থেকে ১২ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে।

ফলোআপ:ঝিকরগাছার শংকরপুর সংবাদ প্রকাশের পর মোনছোপ আলী ও তার বোন পেলো বয়স্ক ভাতার কার্ড

ফলোআপ:ঝিকরগাছার শংকরপুর সংবাদ প্রকাশের পর মোনছোপ আলী ও তার বোন পেলো বয়স্ক ভাতার কার্ড

আব্দুল জব্বার, স্টাফ রিপোর্টার।।কপোতাক্ষ নিউজ সহ বিভন্নি গন মাধ্যম। অবশেষে সকল জল্পনা কল্পনার অবসান ঘটিয়ে  বিভিন্ন অনলাইন পত্রিকা সাংবাদিক ভাইদেরও  ফেসবুক বন্ধুদের সহযোগিতার মধ্যে দিয়ে সংবাদ প্রচারের মাধ্যমে  যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলার ১০ নং শংকরপুর ইউনিয়ন এর ১নং ওয়ার্ডের বকুলিয়া গ্রামের  শতবর্ষ মোনছোপ আলী, তাহার বোন নবিছন বেগম পেলো বুহু দিনের সেই আশা আখাংকার বয়স্ক ভাতার কার্ড।  ১৯ এবং ২০ ই মার্চ বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে শতবর্ষ মোনছোপ আলীর বিষয়ে গন মাধ্যম প্রচার হলে  বিষয়টি ভাইরাল হয়। 

সেই  ধারাবাহিকতায় ঝিকরগাছা উপজেলা সুযোগ্য  নির্বাহী কর্মকর্তা এবং সমাজ সেবা অধিদপ্তরের প্রচেষ্টায় শতবর্ষ মুরুব্বি ব্যাপারটি আমলে আনে এবং  তাদের  নির্দেশেক্রমে খুব অল্প সময়ের মধ্যে উপজেলার ১০ নং শংকরপুর ইউনিয়নের ১ নং ওয়ার্ডের বকুলিয়া গ্রামের শতবর্ষ পার করা সেই মোনসেপ আলী ও তাহার বোন নবীসন বেগমের বয়স্ক ভাতার কার্ড হস্তান্তর করার নিদর্শনা দেওয়া  হয়। সে আলোকে ০৬-০৪-২১ ইং তাং সোমবার দুপুর ১টার সময়  তাহার নিজ গ্রাম বকুলিয়ায় গ্রামে গিয়ে  এ বয়স্ক ভাতার কার্ড দুই ভাই বোনের হাতে তুলে দেওয়া হয়।

এসময় উপস্হিত ছিলেন, ১০ নং শংকরপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মাওঃ মোঃ নিছার উদ্দিন, উপজেলা সমাজ সেবা কর্মকর্তা আয়ূব হোসেন, শংকরপুর ১নং ওয়ার্ড  মহিলা মেম্বর আলেয়া ফেরদৌস, এস এ টিভির শার্শা প্রতিনিধি সাংবাদিক জসীম উদ্দীন, সাংবাদিক আব্দুল জলিল, জিল্লুর রহমান আরোও অনেকে উপস্থিত ছিলেন।

লকডাউনে সীমিত পরিসরে চলবে জগন্নাথ, শিক্ষক-কর্মকর্তাদের ঢাকা ত্যাগে নিষেধাজ্ঞা

লকডাউনে সীমিত পরিসরে চলবে জগন্নাথ, শিক্ষক-কর্মকর্তাদের ঢাকা ত্যাগে নিষেধাজ্ঞা
লকডাউনে সীমিত পরিসরে চলবে জগন্নাথ, শিক্ষক-কর্মকর্তাদের ঢাকা ত্যাগে নিষেধাজ্ঞা
জবি প্রতিনিধি: করোনা ভাইরাস সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের প্রজ্ঞাপনের প্রেক্ষিতে ৫ এপ্রিল থেকে ১১ এপ্রিল পর্যন্ত জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে (জবি) জরুরী দপ্তর ও জরুরী কাজে নিয়ােজিত জনবল ব্যতীত সকল বিভাগ/দপ্তর বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। এছাড়াও সরকারি সিদ্ধান্ত অনুযায়ী লকডাউন চলাকালীন সময়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, কর্মকর্তা, কর্মচারীবৃন্দদের নিজ নিজ বাসায় অবস্থান করার জন্য নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

সোমবার (৫ এপ্রিল) উপাচার্যের (দায়িত্বপ্রাপ্ত) নির্দেশক্রমে রেজিস্ট্রার প্রকৌশলী মোঃ ওহিদুজ্জামানের সই করা একটি জরুরি বিজ্ঞপ্তি ও পরবর্তীতে আরো একটি সম্পূরক জরুরি বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়।জরুরি বিজ্ঞতিতে বলা হয়, সরকারের প্রজ্ঞাপনের প্রেক্ষিতে আগামী ৫ এপ্রিল থেকে ১১ এপ্রিল পর্যন্ত জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের জরুরি দপ্তর ও জরুরি কাজে (যেমন বিদ্যুৎ, গ্যাস, পানি, টেলিফোন, ইন্টারনেট, জরুরি গবেষণা ইত্যাদি) নিয়োজিত জনবল ছাড়া সব বিভাগ/দপ্তর বন্ধ থাকবে। তবে উপাচর্যের দপ্তর, ট্রেজারার দপ্তর, রেজিস্ট্রার দপ্তর, অর্থ ও হিসাব দপ্তর, প্রকৌশল দপ্তর, পরিকল্পনা ও উন্নয়ন দপ্তর, আইসিটি সেল, জনসংযোগ, তথ্য ও প্রকাশনা দপ্তর এবং প্রষ্টর দপ্তর প্রয়োজনীয় জনবল দ্বারা সীমিত আকারে চালু থাকবে এবং সব ধরনের অনলাইন কার্যক্রম চালু থাকবে। এছাড়া সরকার কর্তৃক সময়ে সময়ে জারীকৃত নির্দেশ প্রতিপালিত হবে।

সম্পূরক জরুরি বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের যে সকল বিভাগ/দপ্তরসমূহ খােলা রাখার জন্য বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়েছে সে সকল বিভাগ/দপ্তর ছাড়াও জরুরি প্রয়োজন অনুযায়ী পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক দপ্তর, নিরাপত্তা, পরিবহণপুলসহ অন্যান্য ইনস্টিটিউট/বিভাগ/দপ্তর প্রয়ােজনীয় জনবল দ্বারা সরকারী স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণপূর্বক সীমিত আকারে খােলা রাখতে হবে। সরকারী সিদ্ধান্ত অনুযায়ী লকডাউন চলাকালীন সময়ে শিক্ষক/কর্মকর্তা/কর্মচারীবৃন্দকে নিজ নিজ বাসায় অবস্থান করতে হবে। কেউ কর্মস্থল তথা ঢাকা ত্যাগ করতে পারবেন না।

এ ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার প্রকৌশলী মোঃ ওহিদুজ্জামান বলেন, "শুধুমাত্র জরুরি কাজের জন্য বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখিত দপ্তরসমূহ খোলা থাকবে। এছাড়া সকল কার্যক্রম বন্ধ থাকবে।"ঢাকা ত্যাগের সিদ্ধান্তে তিনি বলেন, "এটি লকডাউনের সরকারি প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।"

তিনি আরো বলেন, "আমরা বিশ্ববিদ্যালয়ের যথাসম্ভব কম স্টাফদের নিয়ে কার্যক্রম চালানোর চেষ্টা করবো এবং ক্যাম্পাসে অবস্থানরত সকলের মাস্ক পরিধান বাধ্যতামূলক ও স্বাস্থ্যবিধি মানার ব্যাপারে কঠোর অবস্থানে থাকবো। নিরাপত্তা প্রহরী ও দায়িত্বরত কর্মচারীদের সার্বক্ষণিক কড়াকড়ি অবস্থানে থাকার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।"
 
উল্লেখ্য সারাদেশে করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব পুনরায় ব্যাপকহারে বৃদ্ধি পাওয়ায় বিভিন্ন নির্দেশবলী সহকারে গণপরিবহনসহ যানচলাচল বন্ধ করে দিয়ে ৫ এপ্রিল থেকে ১১ এপ্রিল পর্যন্ত সারাদেশে লকডাউন ঘোষণা করে প্রজ্ঞাপন জারি করে সরকার। লকডাউনের আগেই বিভিন্ন বিভাগ/দাপ্তরিক কার্যক্রম সীমিত আকারে পরিচালনা ও বিভিন্ন বিভাগের পরীক্ষাসমূহ বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

ঝালকাঠিতে অনাবৃষ্টিতে লোকশানের মুখে ফুড-তরমুজসহ রবিশস্য চাষীরা দিশেহারা

ঝালকাঠিতে অনাবৃষ্টিতে লোকশানের মুখে ফুড-তরমুজসহ রবিশস্য চাষীরা দিশেহারা

মোঃ নাঈম হাসান ঈমন ঝালকাঠি প্রতিনিধি:
ঝালকাঠিতে অনাবৃষ্টিতে পানি সংকটের কারনে লোকশানের মুখে পড়েছেন ফুড-তরমুজসহ রবি মৌসুমের বিভিন্ন ধরনের রবিশস্য চাষীরা। প্রচন্ড রোদ আর অনাবৃষ্টির এবং খাল বিলে পানি কমে যাওয়ায় ফসলের ক্ষেত ফেটে খা খা করছে। এতে ফুড-তরমুজ (বাঙ্গী) সহ বিভিন্ন ধরনের ফসলের গাছ শুকিয়ে পাতা সবুজ বর্ণ ধারন করেছে। এসব কারনে আশানুরূপ ফলন পাওয়া সম্ভবন নয় বলে দিশেহারা হয়ে পড়েছেন কৃষকরা। উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রমতে, এ উপজেলায় চলতি রবি মৌসুমে ৫ হাজার ৫শ' হেক্টর জমিতে রবিশস্যের আবাদ হয়েছে। এর মধ্যে শুক্তাগড় ও মঠবাড়ি ইউনিয়নে আবাদ বেশি। সরেজমিনে দেখা গেছে, উপজেলার একেশরা ও বামনকাঠি এ দুই গ্রামে প্রায় ২৫ বিঘা জমির রবিশস্য পানির অভাবে রোদের তাপে নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। এতে এলাকার কৃষকরা কয়েক লাখ টাকা লোকশানের মুখে পড়েছেন। বামনকাঠি ও একেশ্বারা গ্রামের শাখাওয়াত ফরাজি, আজিজ হাওলাদার, খলিল হাওলাদার, দেলোয়ার হাওলাদার ও এনামুল হোসেনসহ একাধিক কৃষক বলেন, কৃষি ব্যাংক, সোনালী ব্যাংক, ব্র্যাক,আশা, গ্রামিন ব্যাংক, শক্তি ফাউন্ডেশন ও ক্রোমতসহ বিভিন্ন এনজিও থেকে বিভিন্ন পরিমানে লোন নিয়ে তারা এ বছর ১০ বিঘা জমিতে ফুট (বাঙ্গি), ৪ বিঘা জমিতে সূর্যমুখি, ৪ বিঘা জমিতে তিল, ২ বিঘা জমিতে মুগ ডাল, ১ বিঘা জমিতে ছোলা, ১৫ কাঠা জমিতে ডেঢ়শ (বেন্ডি), ৫ কাঠা জমিতে মরিচের চাষসহ অন্যান্য রবিশস্য চাষ করা হয়েছে। কৃষকরা প্রায় তিন লক্ষাধিক টাকা বিনিয়োগ করেছেন। ঠিকমতো সময় বৃস্টি হলে ভালো ফলন হলে প্রায় ৫ থেকে ৬ লাখ টাকার ফসল উৎপাদন হতো। কিন্তু এবছর এপ্রিলের প্রথম সপ্তাহ পর্যন্ত রাজাপুরে কোন বৃষ্টিপাত না হওয়ায় ফসলের গাছ বৃদ্ধি হয়নি। ফুল ও ফল রোদের তাপে ঝরে পড়ে গিয়েছে। ফলন যাহা হয়েছে তাও পুষ্টিকর হয়নি। কাছাকাছি খাল না থাকায় সেচের ব্যবস্থাও করা সম্ভব হয়নি। শেষ সময়ে পানিতে তলিয়ে যাওয়ার ভয়ে মূলত উচু এলাকা নির্বাচন করা হয় ফুড তরমুজসহ রবিশস্যের জন্য। কিন্তু এবার বৃষ্টি না হওয়া এবং আশপাশের নালা শুকিয়ে যাওয়া কাছাকাছি পানি না পাওয়ায় পরিমান মত পানি সেচ দেয়া সম্ভব হয়নি। তাই কাঙ্খিত ফলন উৎপাদন হয়নি। যে ফলন হয়েছে তাতে দেড় থেকে দুই লাখ টাকা পাওয়া যেতে পারে। এ বছর ওই এলাকার কৃষকদের লাখ লাখ টাকা লোকশান গুনতে হবে বলে তারা আরো জানান। লোকশান পুষিয়ে উঠতে ওই এলাকার কৃষকরা সরকারের কাছে বিশেষ প্রণোদনা পাওয়ার দাবি জানিয়েছেন। ওই এলাকার কৃষক সাখাওয়াত ফরাজী বলেন, উপজেলা কৃষি অফিসের আওতায় কোন প্রদর্শনী ক্ষেত করলে সে বিষয়ে মোটামুটি খোজ খবর নেন কৃষি কর্মকর্তারা। কিন্তু ব্যক্তিগত উদ্যোগে কৃষি চাষ করলে উপজেলা কৃষি অফিস থেকে কোন যোগাযোগ করেন না। গত বছরে আমার প্রায় ১৩ বিঘা জমির রবিশস্য জোয়ারের পানিতে তলিয়ে নষ্ট হয়ে গিয়েছিলো কিন্তু কৃষি কর্মকর্তারা একবারও খোজ নেয়নি। এবারেও আমার প্রায় ১৪ বিঘা জমির রবিশস্য রোদের তাপে ক্ষতি হয়েছে। এ পর্যন্ত কোন খোজ খবর নেয়নি উপজেলা কৃষিকর্মকর্তারা। এ বিষয়ে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মোঃ রিয়াজ উল্লাহ বাহাদুর বলেন, কৃষকদেরকে ফসলের শত্রæ পোকা নিধন ও প্রয়োজনিয় সেচের পরামর্শ দেয়া হয়েছে। কিন্তু ওই এলাকায় কাছাকাছি খাল না থাকায় তুলনামুলক ফসল উৎপাদন কম হতে পারে। উপজেলায় সার্বিক দিক থেকে এ বছর আবাদ বেশী হয়েছে এবং গত কয়েক বছরের তুলনা ফলনও ভালো হয়েছে। এ বছর জোয়ারের পানিও দেড়িতে এসেছে। পর্যাপ্ত সেচের অভাবে দু'এক জায়গায় সমস্যা হতে পারে। ক্ষতিগ্রস্থরা স্থানীয় মেম্বর ও চেয়ারম্যানদের সাথে যোগাযোগ করলে যাচাই বাছাই করে তাদেরকে প্রণোদনা দেয়া যেতে পারে বলে তিনি বলেন। তিনি আরো জানান, উপজেলায় এবছর মোট ৫ হাজার ৫শ' হেক্টর জমিতে রবিশস্য চাষ করা হয়েছে। সার্বিকভাবে ফলনও ভালো হয়েছে।

মেহেরপুরে করােনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের প্রথম দিনের লকডাউন ঢিলেঢালা

মেহেরপুরে করােনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের প্রথম দিনের লকডাউন ঢিলেঢালা
মেহেরপুরে করােনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের প্রথম দিনের লকডাউন ঢিলেঢালা

তানভীর আহমেদ, মেহেরপুর প্রতিনিধি:এক
 সপ্তাহের  লকডাউনের প্রথম দিনের সকালে গাংনী উপজেলা শহরের দােকান-পাট বন্ধ রয়েছে। তবে ছােট ছােট কিছু দােকান খুলে রাখার দৃশ্য দেখা গেছে। সরকার ঘােষিত গণপরিবহন বন্ধ থাকলেও গাংনী ছােট ছােট যানবাহন (অটােভ্যান,অটাে রিক্সা,আলম সাধু,সিএনজি,ট্রাক) যথারীতি চলাচল করছে।

এদিকে গাংনী উপজেলা শহরের বড় বড় ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় ব্যবসায়ি ও কর্মচারীদের মধ্যে ক্ষােভ বিরাজ করছে।দােকান-পাট বন্ধ ঘােষণার প্রতিবাদে আজ গাংনী উপজেলা শহরের ব্যবসায়ি ও কর্মচারীরা বিক্ষােভ ও প্রতিবাদ করেছেন।

মাস্ক না পরায় পথচারীর জরিমানা

মাস্ক না পরায় পথচারীর জরিমানা
মাস্ক না পরায় পথচারীর জরিমানা

তানভীর আহমেদ, মেহেরপুর প্রতিনিধি:
সরকারি আইন অমান্য করে লকডাউনের মধ্যে মাস্ক বিহীন বাইরে ঘোরাফেরা করার সময় এক পথচারীর নিকট থেকে জরিমানা আদায় করে ভ্রাম্যমান আদালত। আজ মেহেরপুর জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হয়।

 সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট কাজী মোহাম্মদ অনিক ইসলামের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে।মেহেরপুর  শহরের কলেজ মোড় এলাকায় মাস্ক বিহীন ঘোরাফেরা করার দায়ে এক পথচারীর নিকট থেকে ২শ টাকা জরিমানা আদায় করে।

মেহেরপুর জেলা প্রশাসন ও পুলিশের অভিযানে মাস্ক না থাকায় ১৩ জনের অর্থদণ্ড

মেহেরপুর জেলা প্রশাসন ও পুলিশের অভিযানে মাস্ক না থাকায় ১৩ জনের অর্থদণ্ড

তানভীর আহমেদ, মেহেরপুর প্রতিনিধি:মেহেরপুরে করোনাভাইরাস সচেতনতার লক্ষ্যে পৃথক অভিযানে মুখে মাস্ক না থাকায়, এবং লকডাউন না মানাই, ১৩ জনের কাছে ৫ হাজার ৭শ টাকা জরিমানা আদায় করে ভ্রাম্যমান আদালত।
আজ মেহেরপুর জেলার মোট ৬ টি স্থানে একই সাথে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন জেলা প্রশাসনের একাধিক সহকারী কমিশনার ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট গণ, সেখানে পুলিশের একাধিক টিম উপস্থিত ছিলেন। এ সময় মুখে মাস্ক না থাকায় এবং লকডাউন না মানাই মেহেরপুর শহরের কাথুলী বাস স্ট্যান্ড, হোটেল বাজার, কলেজ মোড় ও কোট মোড় সহ গাংনী ও মুজিবনগরে মোট ৬ টি স্থানে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে ১৩ জনের কাছে ৫ হাজার ৭শ টাকা জরিমানা আদায় করা হয়েছে। এ সময় মানুষকে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য সচেতন করেন তারা, এছাড়াও অসহায় মানুষদের মাঝে মাস্ক বিতরণ করা হয়েছে।

বেনাপোলে লকডাউনের প্রথম দিনে সচল রয়েছে আমদানি রফতানি বাণিজ্য , মানুষের ঢল

বেনাপোলে লকডাউনের প্রথম দিনে সচল রয়েছে আমদানি রফতানি বাণিজ্য , মানুষের ঢল

তুহিন হোসেন, বেনাপোল প্রতিনিধি : বেনাপোলে লকডাউনের প্রথম দিন সচল রয়েছে আমদানি রফতানি বাণিজ্য, স্বাভাবিক আছে পাসপোর্ট যাত্রী যাতায়াত। তবে বেনাপোল বাজার বেলা বাড়ার সাথে সাথে মানুষর আনাগোনা ।
লকডাউনের প্রথম দিন বেনাপোল স্থল বন্দর দিয়ে ভারতের সাথে আমদানি রপ্তানি বাণিজ্য স্বাভাবিক রয়েছে। সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে সরকারি স্বাস্যবিধি মেনে চলছে আমদানি রফতানি কার্যক্রম। সোমবার সকাল থেকে বেনাপোল পেট্রাপোল বন্দরে মধ্যে স্বাভাবিক নিয়ম চলছে আমদানি রফতানি বাণিজ্য। এছাড়ও বেনাপোল স্থলবন্দরে পন্য ওঠা নামা ও পন্য খালাস পক্রিয়া স্বাভাবিক রয়েছে। স্বাভাবিক আছে বেনাপোল ইমিগ্রেশন পাসপোর্ট যাত্রী যাতায়াত। বেনাপোল ইমিগ্রেশন কর্মকর্তা মেডিকেল অফিসার আজিম উদ্দিন জানিয়েছে, এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত 70 জন পাসপোর্ট যাত্রী ভারত থেকে বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে।  বেনাপোলে শপিংমলগুলো বন্ধ থাকলেও বেনাপোল বাজারে বেলা বাড়ার সাথে সাথে মানুষের আনাগোনা বেড়েছে। বেনাপোল সড়কে ইজিবাইক ও ইঞ্জিন চালিত ভ্যান চলতে দেখা গেছে। চায়ের দোকানগুলোতে মানুষের উপস্থিত ছিল পূর্বের ন্যায়। মহামারী করোনাভাইরাস এর কারণে সরকার ঘোষিত সাত দিনের লকডাউন থাকলেও বেনাপোল সাধারণ মানুষের মধ্যে তেমন স্বাস্থ্যবিধি মানতে দেখা যায়নি। তবে পুলিশ ও উপজেলা প্রশাসন তৎপরতা রয়েছে।

চিটাগাং রোড়ে লকডাউনের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ ব্যবসায়ীদের

চিটাগাং রোড়ে লকডাউনের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ ব্যবসায়ীদের

শিপন নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি: নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জে চিটাগাং রোড় এলাকায় লকডাউন প্রত্যাহারের দাবিতে বিক্ষোভ করেছে স্থানীয় ব্যবসায়ীরা।আজ  (৫ এপ্রিল) বেলা ১১ টায় লকডাউনের প্রথম দিনে ঢাকা-চট্রগ্রাম মহাসড়কের সিদ্ধিরগঞ্জের শিমরাইল মোড় এলাকার হাজী আহসান উল্লাহ সুপার মার্কেট এর সামনে সড়ক অবরোধ করে শতাধিক ব্যবসায়ী বিক্ষোভ করেন। পরে খবর পেয়ে মহাসড়ক থেকে তাদের সরিয়ে দেয় পুলিশ।

এ সময় মিজানুর রহমান নামে এক ব্যবসায়ী বলেন, লাখ লাখ টাকার মালামাল আমরা বাকিতে এনেছি। এভাবে মার্কেট বন্ধ থাকলে পাওনাদারের টাকা দিতে পারবো না। আসন্ন ঈদে কর্মচারীদের বেতন দিতে পারবো না। তারপর আমাদের পরিবারের কি হবে। যেভাবে কল কারখানা চালু রেখেছেন, সেই ভাবে আমাদের মার্কেটগুলোকে খোলার অনুমতি দেওয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রীর কাছে দাবি জানাই।   

এছাড়া আরো এক ব্যবসায়ী বলেন আমরা কোনো লকডাউন চাই না। পবিত্র রমজান মাস ও ঈদ সামনে রেখে লকডাউনে স্বাস্থ্যবিধি মেনে দোকান খোলা রাখতে চাই।প্রসঙ্গত, দেশে করোনার ঊর্ধ্বমুখী সংক্রমণ রোধে আগামী এক সপ্তাহের জন্য লকডাউনের ঘোষণা দিয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে সরকার।

এ বিষয়ে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মশিউর রহমান বলেন, কয়েকজন লোক জড়ো হয়েছিল। পরে তাদের সরিয়ে দেওয়া হয়। স্বাস্থ্যবিধি না মানলে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এ ছাড়াও প্রয়োজন ছাড়া মানুষকে রাস্তায় বের না হওয়ার অনুরোধও জানান পুলিশের এই কর্মকর্তা।

লকডাউনেও চালু হিলি স্থলবন্দরের পন্য আমদানি-রফতানি

লকডাউনেও চালু হিলি স্থলবন্দরের পন্য আমদানি-রফতানি

কৌশিক চৌধুরী, হিলি প্রতিনিধিঃকরোনা ভাইরাসের সংক্রমন বেড়ে যাওয়ায় আজ সোমবার থেকে দেশ ব্যাপি শুরু হয়েছে এক সপ্তাহের লকডাউন। হিলিতে বন্ধ রয়েছে সকল দোকানপাঠ। দেশে পন্য সরবরাহ স্বাভাবিক রাখতে সরকারী সিদ্ধান্ত মোতাবেক লকডাউনেও চালু রয়েছে হিলি স্থলবন্দরের আমদানি-রফতানি কার্যক্রম।

অন্যান্য দিনের মতোই চলছে বন্দরে পণ্য আনা-নেয়া ও খালাসসহ সকল কার্যক্রম। অভ্যাহত রয়েছে ভারত-বাংলাদেশের মধ্যে পণ্য আমদানি-রফতানি ও ছাড় করণ কাজ। ফলে বন্দরে পেঁয়াজ, চাল, গম, জিরা, ভ‚ট্টা, পাথরসহ নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য আমদানি অব্যাহত রয়েছে। সবশেষ পাওয়া খবরে বেলা ২টা পর্যন্ত প্রায় ৭০টি পন্যবাহী ট্রাক ভারত থেকে বন্দরে প্রবেশ করেছে। বন্দর থেকে পন্য নিয়ে ট্রাক গুলো দেশের অভ্যন্তরে তাদের গন্তব্যে ছেড়ে যাচ্ছে।

হিলি স্থলবন্দরের সে-সরকারী অপারেটর প্রতিষ্ঠান পানামা হিলি পোর্ট কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, দেশের স্থলবন্দর গুলো লকডাউনের আওতা মূক্ত থাকায় বন্দরের কার্যক্রম অন্যান্য দিনের মতো অব্যাহত রয়েছে। তবে স্বাস্থ্যবিধি মেনেই চলছে সকল কার্যক্রম।হিলি কাস্টমসের ডিপুটি কমিশনার সাইদুল আলম জানিয়েছেন, দেশে নিত্যপ্রয়োজনীয় পন্যের সরবরাহ স্বাভাবিক রাখতে পন্য দ্রুত ছাড় করণ করা হচ্ছে।

ভালুকায় পানিতে পড়ে শিশুর মৃত্যু

ভালুকায়  পানিতে পড়ে শিশুর মৃত্যু

স্টাফ রিপোর্টার:  ময়মনসিংহের ভালুকায় পানিতে ডুবে আহাদ (৭) নামে এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে।সোমবার (৫এপ্রিল) সকাল ১০টায় উপজেলার হবিরবাড়ী ইউনিয়নের পাড়াগাঁও পাঁচপাই গ্রামে নাসির গ্লাস নামে এক কোম্পানীর ক্রয়কৃত জমিতে খনন করা অরক্ষিত একটি গর্তে এই ঘটনা ঘটে। নিহত আহাদ ওই গ্রামের আলম মিয়ার ছেলে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, এলাকার অন্য ছেলেদের সাথে খেলতে বের হয়ে ওই গর্তে জমে থাকা পানিতে সাঁতার কাটতে নেমে ডুবে যায়। সাথে থাকা ছেলেদের ডাক চিৎকারে এলাকাবাসী এগিয়ে এসে তাকে উদ্ধার করে ভালুকা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষনা করেন। নিহত আহাদ স্থানীয় ব্রাক স্কুলের প্রথম শ্রেনীর ছাত্র।

আত্রাইয়ে ইন্সুইরেন্স কোম্পানী হাতিয়ে নিল কয়েক কোটি টাকা

আত্রাইয়ে ইন্সুইরেন্স কোম্পানী হাতিয়ে নিল কয়েক কোটি টাকা


মোঃ ফিরোজ হোসাইন ,রাজশাহী ব্যুরো:নওগাঁর আত্রাইয়ে "যা জমা দেবেন এক সপ্তাহের মধ্যে তার দ্বিগুণ ফেরত পাবেন" এমন প্রলোভন দিয়ে এনআরবি গ্লোবাল লাইফ ইন্সুরেন্স কোং লিঃ নামের একটি সংস্থার বিরুদ্ধে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।
এ ঘটনায় আত্রাই উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. ইকতেখারুল ইসলাম আত্রাই থানা পুলিশকে সাথে নিয়ে অভিযান চালিয়ে ওই অফিস থেকে ৩ জনকে আটক করেন এবং ভূক্তভোগী অনেককে উদ্ধার করেছেন। এ ব্যাপারো ভূক্তভোগীরা আত্রাই থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দাখিল করেছেন।
প্রাপ্ত অভিযোগ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলার খোলাপাড়া নামক স্থানে "এনআরবি গ্লোবাল লাইফ ইন্সুরেন্স কোং লিঃ" নামে প্রায় ৩ মাস পূর্বে একটি অফিস খোলেন। ইন্সুরেন্সের আড়ালে তারা এলাকার তরুনীদের অর্থনৈতিক স্বাবলম্বী করার প্রলোভন দিয়ে সঞ্চয় হিসাব খুলতে উদ্বুদ্ধ করেন। তাদের প্রতারণার শিকার হয়ে এলাকার বিভিন্ন গ্রামের প্রায় ৬ শতাধিক মহিলা সেখানে সঞ্চয় হিসাব খুলেন। এদিকে সঞ্চয়ী মহিলাদের বিভিন্ন সময় প্রশিক্ষণের নামে একটি ঘরে নিয়ে মোটা অংকের টাকা জমা করতে উদ্বুদ্ধ করা হয়। সেখানে তাদেরকে শুনানো হয় "যা জমা দেবেন এক সপ্তাহের মধ্যে তার দ্বিগুণ ফেরত পাবেন"। এমন প্রতারণার ফঁাদে পড়ে উপজেলার বিভিন্ন গ্রামের ৬ শতাধিক মহিলা কোটি কোটি টাকা ওই অফিসে জমা দেন। টাকা জমা দেয়ার এক সপ্তাহ পর দ্বিগুণ টাকা ফেরৎ চাইলে তারা কালক্ষেপন করতে থাকেন। এরই মধ্যে বিষয়টি জানাজানি হলে গত রোববার সন্ধ্যায় আত্রাই উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. ইকতেখারুল ইসলাম থানা পুলিশকে সাথে নিয়ে ওই অফিসে হানা দেন। এ সময় অফিসে কর্মরত ম্যানেজার নূরুন্নবী ইসলাম (৪৮), বকতিয়ার হোসেন ডায়মন্ড (৩৩) ও রবিউল ইসলামকে (৩৫) আটক করেন। এ সময় সেখান থেকে উদ্ধার করা হয় ভূক্তভোগী প্রায় ১০ জন মহিলাকে।
ভূক্তভোগী মহিলা উপজেলার মহাদিঘী গ্রামের লিপি, শাহেরা শারমিন, মাহবুবা খানম, সুমাইয়া সনি, কাশিয়াবাড়ি গ্রামের বৃষ্টি আক্তার, জাতপাড়া গ্রামের হিরা, শাহাগোলা গ্রামের সুমাইয়া সুলতানা, শিমুলিয়া গ্রামের ছাবিনা সহ অনেকেই জানান, প্রায় ৬ শতাধিক তরুণী তারা প্রত্যেকে ৫০ হাজার থেকে সাড়ে ৩ লাখ টাকা পর্যন্ত এ অফিসে জমা দিয়েছেন। কিন্তু তাদের টাকা নিয়ে দ্বিগুণ টাকা তো দূরের কথা আসল টাকাও তারা ফেরত পাচ্ছেন না। গতকাল সোমবার আত্রাই থানা চত্বর ও এনআরবি অফিস সংলগ্ন এলাকাতে দেখা যায় প্রতারণার শিকার শত শত তরণীর বুকফাটা আর্তনাদ।

আত্রাই থানার ওসি (তদন্ত) মোজাম্মেল হক কাজি বলেন, ইন্সুরেন্সের আড়ালে তারা ভয়াবহ প্রতারণা বাণিজ্য শুরু করেছে। রোববার সন্ধ্যায় ওই অফিস থেকে ৩ জনকে আটক করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে ভূক্তভোগিরা অভিযোগ করেছেন। গতকাল সোমবার আটককৃত ৩ জনকে  নওগাঁ জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। উপজেলা নির্বাহী অফিসার এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মো. ইকতেখারুল ইসলাম বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সেখানে অভিযান পরিচালনা করে যাদেরকে পেয়েছি তাদেরকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছি। তবে মূল হোতাদের পাওয়া যায়নি।

মোংলা বন্দরের পশুর চ্যানেলের ইনার বার ড্রেজিংয়ের বালু ডাম্পিং ইস্যুতে মুখোমুখি অবস্থানে

মোংলা বন্দরের পশুর চ্যানেলের ইনার বার ড্রেজিংয়ের বালু ডাম্পিং ইস্যুতে মুখোমুখি অবস্থানে

মোঃএরশাদ হোসেন রনি, মোংলাঃমোংলা বন্দরের পশুর চ্যানেলের ইনার বার ড্রেজিংয়ের বালু ডাম্পিং ইস্যুতে চীনা কোম্পানী, বন্দর কর্তৃপক্ষ ও গ্রামবাসী মুখোমুখী অবস্থান নিয়েছে। কৃষি (ধান) জমি ও মৎস্য (বাগদা চিংড়ি) ঘেরের ক্ষতিপূরণ না দিয়ে জোরপূর্বক ডাইক নির্মাণ ও বালু ডাম্পিং প্রচেষ্টার অভিযোগ করেছেন স্থানীয়রা। তারা বলছেন, ফসলি জমি ও জলাভূমির শ্রেণী বিন্যাশে হুমকির মুখে পড়বে জীববৈচিত্র্যসহ স্থানীয়দেও জীবন-জীবিকা। আর চলতি ঝড়-জলোচ্ছ্বাসের মৌসুমে উড়ো বালুর আগ্রাসনে বসবাসের অনুপযোগী পরিবেশের শংকায় চরম হতাশার মধ্যে পড়েছেন শত শত গ্রামবাসী। তাদের দাবী, বন্দর কতর্ৃপক্ষ ও চীনা কোম্পানি পূর্ব পরিকল্পনা ছাড়াই নামমাত্র ক্ষতিপূরণের আশ্বাস দিয়ে ফসলি জমি এবং মৎস্য ঘেরে বালু ডাম্পিং প্রচেষ্টায় লিপ্ত হয়েছে। এ অবস্থায় জমির মালিকসহ সাধারণ মানুষ বিক্ষুব্ধ হয়ে উঠেছেন। 

সোমবার সকাল ৯ টায় থেকে দুপুর ১২ টা পর্যন্ত স্থানীয় নারী-পুরুষসহ শত শত গ্রামবাসী তাদের ফসলি জমি ও চিংড়ি ঘেরে রক্ষার দাবীতে সমবেত হন পশুর নদীর তীরবতর্ী চিলা ইউনিয়নের সুন্দরতলা এলাকায়। এ সময় মানববন্ধন সমাবেশসহ সংবাদ সম্মেলনে গ্রামবাসীর পক্ষে মোঃ আলম গাজী লিখিত বক্তব্যে নানা অভিযোগ উত্থাপন করেন। তিনি বলেন, বন্দর কতর্ৃপক্ষ ও ড্রেজিং কাজে নিয়োজিত চীনা কোম্পানী জমির মালিকদের কিছু না জানিয়ে কৃষি জমি ও মৎস্য ঘের শুকিয়ে বালু ডাম্পিং করার জন্য গত দুথসপ্তাহ ধরে ডাইক নির্মাণ শুরু করেছে। পরে তারা এ বিষয় আপত্তি জানালে ১০ বছরের ক্ষতিপূরণ দেয়ার আশ্বাস দিয়ে আসছে বন্দর কতর্ৃপক্ষ। কিন্তু কৃষি-মৎস্য ঘেরের জমিতে বালু ডাম্পিং করা হলে জীবন-জীবিকার উৎস বন্ধ হবে। গ্রামবাসীরা জানান, যে জমিতে তারা ধান উৎপাদন করেন সেই একই জমিতে মৎস চাষ করে সংসার চালাতে হয় তাদের। তাই ধান উৎপাদন ও মাছের চাষ বন্ধ হলে বেকারত্বসহ পথে বসবে অসংখ্য পরিবার। এছাড়া বালু ভরাটের কারেণ আগামী ৫০ বছরের জন্য চরম দূরাবস্থা এবং আর্থিক ক্ষতির সম্মুখিন হতে হবে স্থানীয় বাসিন্দাদের। তাই ফসলি-মৎস্য চাষের জমিতে নদী ড্রেজিংয়ের বালু ডাম্পিংয়ের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছেন জমির মালিক ও গ্রামবাসী। আর এ জন্য কঠোর আন্দোলনের হুশিয়ারি দিয়েছেন তারা। এ অবস্থায় বন্দর কতর্ৃপক্ষ, চীনা ড্রেজিং কোম্পানী ও এলাকাবাসী মুখোমুখি অবস্থান নিয়েছেন। 

এ প্রসঙ্গে বাপাথর বাগেরহাট জেলা সমন্বয়কারী নুর আলম শেখ বলেন, সংশ্লিষ্ট এলাকার বাসিন্দাদের মতামত নিয়ে প্রকল্প গ্রহণ করা উচিৎ। আলোচনা ছাড়াই প্রকল্প গ্রহণ ঠিক হয়নি। জমির মালিকদের যে ১০ বছরের ক্ষতিপূরণের আশ্বাস দেয়া হয়েছে সে ক্ষেত্রে জটিলতা রয়েছে। এছাড়া দীর্ঘ সময়ের জন্য ফসলসহ পরিবেশগত ক্ষতির মুখে পড়বেন ফসলি জমির মালিকসহ জনসাধারণ। 

এ বিষয় মোংলা উপজেলা নির্বাহী অফিসার কমলেশ মজুমদার বলেন, ড্রেজিং প্রকল্পের বালু ডাম্পিং করার জন্য ১০ ফুট উচ্চতার ডাইক নির্মাণ ও ৮ ফুট পর্যন্তু বালু ভরাট করার কথা থাকলেও অতিরিক্ত উচ্চতায় করা হচ্ছে। এছাড়া এলাকাবাসীর উত্থাপিত নানা অভিযোগের ভিত্তিতে উপজেলা ভূমি কর্মকর্তাকে সঙ্গে নিয়ে সরেজমিন পরিদর্শনে অনেক অসংগতি পাওয়া যায় সেখানে। এ সকল বিষয় জেলা প্রশাসককে অবগত করা হয়েছে বলে জানান তিনি।

মোংলা বন্দর কতর্ৃপক্ষ সূত্র জানায়, ৭শথ৯৪ কোটি টাকা ব্যয়ে মোংলা বন্দরের পশুর চ্যানেলের ইনার বার ড্রেজিং প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে। আর ড্রেজিং প্রকল্পের কাজ পেয়েছে চীনা কোম্পানী। গত ১৩ মার্চ থেকে শুরু হয়েছে এ নদী খননের কাজ। নদী খননের বালু ডাম্পিং করার জন্য ১ হাজার একর ফসলি জমি ও মৎস্য ঘেরের জমির ক্ষতিপূরণ দিয়ে তারপর সেখানে বালু ফেলার কথা রয়েছে। বালু ফেলার জন্য ব্যক্তি মালিকানা ছাড়াও প্রায় ৫শথ একর সরকারী খাস জমি চিহিৃত করা হয়েছে। 

নদীর বালু ডাম্পিং বিষয়ে মোংলা বন্দর কতর্ৃপক্ষের প্রধান প্রকৌশলী (সিভিল ও হাইড্রোলিক) ড্রেজিং প্রকল্প কর্মকর্তা শওকত আলী বলেন, জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে জমির প্রকৃত মালিক ও ক্ষতিগ্রস্থদের ১০ বছরের জন্য ক্ষতিপূরণ দেয়া হবে। এক্ষেত্রে তালিকা প্রণয়নসহ প্রয়োজনীয় অর্থ বরাদ্দ রয়েছে। শিগগিরই প্রকৃত জমির মালিকদের ক্ষতিপূরণের অর্থ প্রদাণ করা হবে। তিনি আরও বলেন, সুবিধা ভোগীরা এ নিয়ে নানা চক্রান্ত করছে বলেও অভিযোগ করেন তিনি। #

ফটো কনটেস্ট বিজয়ীদের পুরস্কার দিল ‘স্বপ্নের আলো ফাউন্ডেশন সংগঠন

ফটো কনটেস্ট বিজয়ীদের পুরস্কার দিল ‘স্বপ্নের আলো ফাউন্ডেশন সংগঠন

ঝালকাঠি প্রতিনিধিঃ 
স্বাধীনতার মাস উপলক্ষে (২১-৩০ মার্চ) আয়োজিত এই ফটো কনটেস্ট প্রতিযোগিতায় ঝালকাঠি প্রতিদিন সংবাদ ফেইসবুক গ্রুপে পুরো জেলা থেকে অংশগ্রহণ করে ৭৫জন। প্রতিযোগীদের মধ্য থেকে দর্শকদের সবোর্চ্চ কমেন্ট বিচারকদের বিচারে নির্বাচিত সেরা ০৫জন ভাগ্যবান বিজয়ীদের আকর্ষণীয় গিফট দেওয়া হয়।

ঝালকাঠির রাজাপুর সাংবাদিক ক্লাবের প্রধান কার্যালয়ে ৪ এপ্রিল রবিবার রাতে তিন পর্বে বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন স্বপ্নের আলো ফাউন্ডেশন সংগঠন এর প্রতিষ্ঠাতা মোঃ নাঈম ঈমন হাসান ঈমন, স্বপ্নের আলো ফাউন্ডেশন সংগঠন এর সাধারণ সম্পাদক ইসমাইল হোসেন রবিবার রাতে শেষ হয় বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার হস্তান্তর পর্ব।প্রতিযোগিতার পাঁচজন বিজয়ীরা হলেন ঝালকাঠির জিসান, রাজাপুরের মাইনুল ইসলাম, রাফি, সাকিল, আনিস প্রমু্খ। 

পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন স্বপ্নের আলো ফাউন্ডেশন সংগঠন এর প্রতিষ্ঠাতা মোঃ নাঈম ঈমন হাসান ঈমন, স্বপ্নের আলো ফাউন্ডেশন সংগঠন এর সাধারণ সম্পাদক ইসমাইল হোসেন ও ঝালকাঠি প্রতিদিন সংবাদ গ্রুপের এডমিন ও মোডারেটর প্যানেল এর সকল সদস্যগণ।

জয়পুরহাটে ট্রেনে কাটা পড়ে যুবকের মৃত্যু

জয়পুরহাটে ট্রেনে কাটা পড়ে যুবকের মৃত্যু

জামিরুল ইসলাম জয়পুরহাট জেলা প্রতিনিধিঃ জয়পুরহাট পৌর শহরের সাগরপাড়া-বারোঘাটি পুকুর রেলগেট এলাকায় ট্রেনে কাটা পড়ে আবু হোসেন সিএসপি (৩২) নামে এক চা দোকানীর মৃত্যু হয়েছে। রোববার দুপুরের দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে।  বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন জয়পুরহাট সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) আলমগীর জাহান।

নিহত আবু হোসেন সদর উপজেলার ভেটি এলাকার আসাদ মিয়ার ছেলে। তিনি পৌর শহরের পুর্ব বাজারে চায়ের দোকান করতেন। 

ওসি আলমগীর জাহান জানান, চিলাহাটি থেকে খুলনাগামী রুপসা আন্তঃনগর ট্রেনটি জয়পুরহাট পৌর শহরের সাগরপাড়া-বারোঘাটি পুকুর রেলগেট এলাকা অতিক্রম করছিল। এসময় ওই আবু হোসেন হঠাৎ করে ট্রেনের নিচে ঝাঁপ দেয়। এতে কাটা পড়ে ঘটনাস্থলেই সে মারা যায় । 

ওসি আরো জানান, খবর পাওয়ার সাথে সাথে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। তিনি আত্নহত্যা করেছেন বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন। এ ব্যাপারে রেলওয়ের জিআরপি পুলিশকে খবর দেওয়া হয়েছে। তারা এসে   প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিবেন।

লালমনিরহাটের দগ্ধ পোশাক শ্রমিক রেশমার চিকিৎসায় জেলা প্রশাসকের আর্থিক সহায়তা

লালমনিরহাটের দগ্ধ পোশাক শ্রমিক রেশমার চিকিৎসায় জেলা প্রশাসকের আর্থিক সহায়তা

 
রশিদুল ইসলাম রিপন লালমনিরহাট জেলা  প্রতিনিধিঃ  প্রেমের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করায়, এসিডদগ্ধ পোশাক শ্রমিক রেশমা আক্তারের উন্নত চিকিৎসার জন্য সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন লালমনিরহাটের জেলা প্রশাসক মোঃ আবু জাফর ।সোমবার (৬ এপ্রিল) সকালে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে রেশমার উন্নত চিকিৎসার জন্য আর্থিক সহায়তার চেক রেশমার বাবা সোলায়মানের হাতে তুলে দেন জেলা প্রশাসক আবু জাফর।

বর্তমানে রেশমা লালমনিরহাট সদর হাসপাতালের বিছানায় কাতরাচ্ছে। উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করার প্রয়োজন মনে করছে তার পরিবার। রেশমা এর আগে শেখ হাসিনা ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অফ বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছে।

জানাগেছে, মেহেদী হাসান (১৯) নামের এক বখাটে ২০ মার্চ রাত সাড়ে ০৮ টায় নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লা থানার শাসনগাঁও এলাকায় গার্মেন্টস থেকে ফেরার পথে এসিড জাতীয় দাহ্য পদার্থ নিক্ষেপ করে। তখন রেশমার সাথে তার বান্ধবী স্বপ্না (১৮) এসিড দগ্ধ হন। পরে, স্থানীয় বাসিন্দারা দুই তরুণীকে উদ্ধার করে হাসাপাতালে ভর্তি করেন।এ ঘটানায়, পোশাক শ্রমিক মোছা. রেশমা আক্তার সাফিয়া'র পিঠ হতে নিতম্ব পর্যন্ত ও তার বান্ধবী স্বপ্না আক্তারের ডান হাতের কনুইয়ের চামড়া ঝলসে গেছে।

পরে,রেশমার বাবা বাদী হয়ে ফতুল্লা মডেল থানায় ২১/০৩/২০২১ইং তারিখে একটি লিখিত  অভিযোগ দায়ের করেন। ২২ মার্চ দুপুরের পর অভিযুক্ত মেহেদী হাসানকে গ্রেপ্তার করে আদালাতে সোপর্দ করে থানা পুলিশ।তবে রেশমার শরীরে কি ধরনের দাহ্য পদার্থ ছুড়ে মারা হয়েছিল জানতে চাইলে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ফতুল্লা মডেল থানার উপ-পুলিশ পরিদর্শক সোহাগ চৌধুরী জানান, পরীক্ষা-নিরীক্ষা চলছে রিপোর্ট পেলে জানানো হবে। 

এ বিষয়ে, লালমনিরহাটের জেলা প্রশাসক মোঃ আবু জাফর বলেন, সরকারের পাশাপাশি বিভিন্ন সামাজিক সংগঠন, এনজিও সহ সমাজের বিত্তবানেরা রেশমার উন্নত চিকিৎসার জন্য  সহায়তার হাত বাড়াতে পারে।

গফরগাঁওয়ে গৃহবধূ ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

গফরগাঁওয়ে গৃহবধূ ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

আশরাফ আলী ফারুকী,স্টাফ রিপোর্টার :ময়মনসিংহের গফরগাঁও উপজেলার যশরা ইউনিয়নের শিবগঞ্জ বাজার থেকে রবিবার রাতে দুই সন্তানের জননীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে গফরগাঁও থানা পুলিশ। নিহত আছমা(৩০) যশরা ইউনিয়নের বীরবখুরা গ্রামের আঃবাতেনের মেয়ে।

থানা ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলার রসুলপুর ইউনিয়নের ছয়ানী রসুলপুর গ্রামের সিদ্দিক মিয়ার ছেলে ইউনানি চিকিৎসক সবুজ মিয়া শিবগজ্ঞ বি-দাস স্কুলের পাশে আবুল কালামের ভারাবাড়িতে তার স্ত্রী ও দুই সন্তান নিয়ে বসবাস করতেন।সবুজ মিয়া রবিবার সন্ধ্যায় বাড়িতে প্রবেশ করে দেখে তার স্ত্রী ফাঁসিতে ঝুলছে।এ সময় তিনি ডাক চিৎকার শুরু করলে আশপাশের লোকজন জরো হয়।পরে এলকাবাসী গফরগাঁও থানা পুলিশে খবর দিলে ঘটনাস্থলে পুলিশ পৌছে লাশ উদ্ধার করে।নিহত আছমার শরীরে কোন আঘাতের চিহ্ন পাওয়া যায়নি বলে জানায় পুলিশের উপ-পরিদর্শক আহসান হাবীব।

গফরগাঁও থানার অফিসার ইন চার্জ অনুকূল সরকার বলেন,লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পেলে মৃত্যুর সঠিক কারণ জানা যাবে।

বড়লেখায় লকডাউনের ১ম দিনে এটিএম বুথে গ্রাহক ভোগান্তি

বড়লেখায় লকডাউনের ১ম দিনে এটিএম বুথে গ্রাহক ভোগান্তি

আকরাম হোসাইন মৌলভীবাজার জেলা প্রতিনিধি :' মৌলভীবাজারের বড়লেখা উপজেলার বড়লেখা পৌর শহরে করোনাভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে সরকারি নির্দেশে দ্বিতীয় ধাপের লকডাউনের প্রথম দিনে নগদ টাকা তুলতে ব্যাংকে না গিয়ে এটিএম বুথে ভিড় করছে গ্রাহকরা। কিন্তু নেট সমস্যা, পর্যাপ্ত টাকা না থাকাসহ বিভিন্ন কারণে ভোক্তান্তিতে পড়ছেন গ্রাহকরা।হাজী মসুদ আলী ট্রেড সেন্টারের ডাচ-বাংলা ব্যাংক ফাস্ট ট্র্যাকে টাকা তুলতে এসেছেন কবির নামের এক ব্যক্তি। কিন্তু টাকা তুলতে পারেননি। তিনি জানান, জরুরি টাকা দরকার। কাঠালতলী এটিএম বুথে এসে দেখি নেট সমস্যা। এরপর এখানে আসলাম এখানেও দেখি এটিএম বুথের সাটার লাগানো। 

অপর গ্রাহক নাজমা আক্তার বলেন, যদি প্রয়োজনে টাকা তুলতে না পারি তাহলে কেমন লাগে বলেন? অনেক্ষণ ডাড়িয়ে অপেক্ষা করছি আবার এখন করোনার বিশেষ সময় চলছে কবে যে এই ভোগান্তি থেকে মুক্তি পাই।

বড়লেখা পৌর শহরে অবস্থিত প্রধান ব্রাঞ্চের নিচে হাজী মসুদ আলী ট্রেড সেন্টারে ডাচ বাংলা ব্যাংকের এটিএম বুথ ও ফাস্ট ট্র্যাকের দায়িত্বরত কর্মচারী জামাল উদ্দিন জানান, অন্যান্য দিনের তুলনায় গতকাল টাকা উত্তোলনের পরিমাণ বেশি হওয়ার কারণে, দ্বিতীয় ধাপের লকডাউন হবে সেই লক্ষে গ্রাহকেরা সবচেয়ে বেশি টাকা উত্তোলন করেছেন। এজন্য আজ টাকা সংকট। তবে আমাদের টাকা লোডিং টীমের সদস্যরা বুথে টাকা লোড করতেছেন। এজন্য সাময়িকভাবে বুথ বন্ধ রয়েছে। আশাকরি দ্রুততম সময়ে এই সমস্যা সমাধান হবে।

বড়লেখায় দ্বিতীয় ধাপের লকডাউনের প্রথম দিন পৌর শহর

বড়লেখায় দ্বিতীয় ধাপের লকডাউনের প্রথম দিন পৌর শহর

আকরাম হোসাইন মৌলভীবাজার জেলা প্রতিনিধি :: মৌলভীবাজারের বড়লেখা উপজেলার বড়লেখা পৌর শহরের দ্বিতীয় ধাপের প্রথম দিনের লকডাউন করোনাভাইরাস সংক্রমণ আশঙ্কাজনক হারে বেড়ে যাওয়ায় নিয়ন্ত্রণে চূড়ান্ত পদক্ষেপ হিসেবে আজ সোমবার সকাল ছয়টা থেকে এক সপ্তাহের জন্য শুরু হয়েছে লকডাউন। আগামী ৭ দিন এটি কার্যকর থাকবে।
এ সময় মানুষের কাজ ও চলাচল কঠোরভাবে নিয়ন্ত্রণে থাকবে। জরুরি সেবা ছাড়া প্রায় সবকিছুই বন্ধ থাকবে। চলবে না কোনো গণপরিবহন। অভ্যন্তরীণ পথে উড়বে না উড়োজাহাজও। তেমনি আজকের লকডাউনের প্রথম দিনে বড়লেখা পৌর শহরের বর্তমান পরিস্থিতি।

নওগাঁ জেলায় ১৩শ শতকের প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শন চতুর্মুখী শিবলিঙ্গ উদ্ধার

নওগাঁ জেলায় ১৩শ শতকের প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শন চতুর্মুখী শিবলিঙ্গ উদ্ধার

রহমতউল্লাহ,নওগাঁ  প্রতিনিধিঃ নওগাঁর ধামইরহাট উপজেলায় একটি পুকুর খননের সময় ১৩শ শতকের প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শন চতুর্মুখী শিবলিঙ্গ উদ্ধার করা হয়েছে। রোববার (৪ এপ্রিল) রাত সাড়ে ১০টার দিকে উপজেলার মাহমুদপুর গ্রামের আব্দুল আজিজের খনন করা পুকুর থেকে চতুর্মুখী শিবলিঙ্গটি উদ্ধার করে জয়পুরহাট র‌্যাব-৫ ।

র‌্যাব-৫ জয়পুরহাট ক্যাম্প কোম্পানি কমান্ডার (অতিরিক্ত পুলিশ সুপার) এসএম ফজলুল হক বলেন, গত কয়েকদিন থেকে আব্দুল আজিজ তার ব্যক্তিগত পুরোনো পুকুর খনন করছিলেন। খননের সময় চতুর্মুখী শিবলিঙ্গটি পাওয়া যায়। পরে সংবাদ পেলে রাত সাড়ে ১০টার দিকে উদ্ধার করে নিয়ে আসা হয়।

তিনি আরও বলেন, চতুর্মুখী শিবলিঙ্গের দৈর্ঘ্য-৪২ ইঞ্চি ও ব্যাস-১৬ ইঞ্চি এবং ওজন প্রায় ৬০০ কেজি। যার আনুমানিক মূল্য ১৫ কোটি টাকা। প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শনটি পাহাড়পুর জাদুঘরে হস্তান্তরের বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলেও জানান তিনি

কুষ্টিয়ায় পুলিশ রয়েছে মাঠে, লকডাউন পুরোদমে

কুষ্টিয়ায় পুলিশ রয়েছে মাঠে, লকডাউন পুরোদমে

কুষ্টিয়া জেলা প্রতিনিধি //চঞ্চল হোসাইনঃসরকারের নির্দেশনা অনুযায়ী কুষ্টিয়া শহর ও উপজেলা পর্যায়ে চলছে লকডাউন। জেলা প্রশাসক সাইদুল ইসলামের নির্দেশে একাধিক নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেটের টিম রয়েছে মাঠে। একই সাথে পুলিশ সুপার খাইরুল আলমের নির্দেশে সকাল থেকেই পুলিশ রয়েছে মাঠে। সরকারের প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী দোকান পাট, গণপরিবহন সব বন্ধ রয়েছে।

পুলিশী তৎপরতায় কুষ্টিয়ায় পুরোদমে চলছে লকডাউন।

যশোর জেলা ছাত্রলীগের কমিটি ঘোষনা

যশোর জেলা ছাত্রলীগের কমিটি ঘোষনা

সুমন হোসেন,  যশোর জেলা প্রতিনিধিঃ
যশোর জেলা ছাত্রলীগের নব-নির্বাচিত সভাপতি সালাউদ্দিন কবির পিয়াস ও সাধারণ সম্পাদক তানজীব নওশাদ পল্লব সহ সভাপতি আব্দুর রউফ পিন্টু ও যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রিফাতুজ্জামান রিফাত।
সালাউদ্দিন কবির পিয়াসকে সভাপতি ও তানজীব নওশাদ পল্লবকে সাধারণ সম্পাদক করে ২৩ সদস্যের যশোর জেলা ছাত্রলীগের কমিটি (আংশিক) ঘোষণা করা হয়েছে। আজ রোববার (০৪ এপ্রিল) ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় ও সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য স্বাক্ষরিত এক বিবৃতির মাধ্যমে এ কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। আগামী এক বছরের জন্য এ কমিটিকে অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।
কমিটির অপর নেতারা হলেন, সহ-সভাপতি মো. ইমরান হোসেন, ইয়াসিন আরাফাত তরুণ, আরিফুর রহমান সাগর, শাহাদৎ হোসেন রনি হাওলাদার, কায়েস আহমেদ রিমু, মো. রাজু রানা, আলী হাসান মোর্ত্তজা রিফাত, আব্দুর রউফ পিন্টু, রুহুল কুদ্দুস, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রিফাতুজ্জামান রিফাত, আসাদুজ্জামান আসাদ, আশিকুর রহমান হৃদয়, ইমন হোসেন, শিমুল সরদার, মাসুদ হাসান কৌশিক, সাংগঠনিক সম্পাদক ইলিয়াস হোসেন রিয়াদ, তরিকুল ইসলাম, মারুফ হোসেন, রাকিবুল আলম, এসএম তানভীর আহম্মদ রিয়েল, ফাহমিদা হুদা বিজয়।
এছাড়া কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য হিসেবে মনোনীত হয়েছেন শরিফ এ মারুফ পিয়াল।

কালীগঞ্জে আওয়ামী লীগ নেতার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হামলা আহত- ৩

কালীগঞ্জে আওয়ামী লীগ নেতার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হামলা আহত- ৩

স্টাফ রিপোর্টার, ঝিনাইদহঃ ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ উপজেলার জটারপাড়া গ্রামে ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন পলাশের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে সন্ত্রাসী হামলা চালানো হয়েছে। এ ঘটনায় তিনজন আহত হয়েছেন। এ সময় ব্যবসা প্রতিষ্ঠান থেকে নগদ দুই লাখ ১০ হাজার টাকা লুট করে নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। শনিবার রাত ৯ টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। হামলায় আহতরা হলেন ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন পলাশ, আসলাম হোসেন ও আব্দুল হামিদ। এরমধ্যে ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন। এ ঘটনায় রোববার আহত পলাশের মা হাওয়া বিবি বাদী হয়ে ৬ জনের নাম উল্লেখ করে কালীগঞ্জ থানায় একটি অভিযোগ দিয়েছেন। অভিযোগে উল্লেখ করা হয়েছে, শনিবার রাত ৯ টার দিকে জটারপাড়া গ্রামের আব্দুল মতলেব, জহুরুল ইসলাম, আসলাম হোসেন, তোতা মিয়া, পান্নু মিয়া ও গোলাম রসুলসহ ১০/১৫ জনের একটি দল আনোয়ার হোসেন পলাশের সার ও কীটনাশকের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হামলা চালায়। এসময় তারা তিনজনকে ব্যাপক মারধর করে। এর এক পর্যায়ে তারা ব্যবসা প্রতিষ্ঠান থেকে নগদ দুই লক্ষ ১০ হাজার টাকাও লুট করে নিয়ে যায়। কালীগঞ্জ থানার ডিউটি অফিসার এসআই শাপলা খাতুন জানান, একটি অভিযোগ পাওয়া গেছে। তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

একদিনে সাড়ে ১১ বিঘা জমি কিনে আলোচনায় এক নাইটগার্ড

একদিনে সাড়ে ১১ বিঘা জমি কিনে আলোচনায় এক নাইটগার্ড

স্টাফ রিপোর্টার, ঝিনাইদহঃ একদিনে সাড়ে ১১ বিঘা জমি কিনে হৈ চৈ ফেলে দিয়েছেন এক নাইটগার্ড। আলোচিত এই নাইটগাঢের নাম তরিকুল ইসলাম। চাকরী করেন আউট সোর্সিং পদ্ধতিতে নিবন্ধন অধিদপ্তরের নৈশ প্রহরী কাম ঝাড়–দার পদে। 'নো ওয়ার্ক নো পে' ভিত্তিতে তার দিন হাজিরা মাত্র ৬০ টাকা। সে হিসেবে প্রতি মাসে (৮ দিন ছুটি বাদে) তিনি বেতন পান ১৩'শ ২০, আর বছরে পান ১৫ হাজার ৮৪০ টাকার মতো। এই বেতনে চাকরী করেও আয়কর ফাইল খুলে দিচ্ছেন আয়কর। নামে বেনামে মহেশপুর শহরে তার একাধিক মুল্যবান জমি। প্রশ্ন উঠেছে কোথায় পেলেন তিনি এতো টাকা ? শুনতে রুপকথার গল্পের মতো মনে হলেও কোটিপতি এই নাইটগার্ড চাকরী করেন মহেশপুর সাব-রেজিষ্ট্রি অফিসে। কথাবর্তায় চলন বলনে তিনি অফিসারের মতোই। অফিসের কাউকে তিনি পরোয়া করেন না। একহাতে শাসন করেন গোটা সাবরেজিষ্ট্রি অফিস। সর্বক্ষন তার ভয়ে তটস্থ থাকেন সবাই। অফিসার, অফিস স্টাফ ও দলিল লেখক তার কাছে জিম্মি। কথামতো কাজ না করলে কারণে অকারণে স্টাফদের মারধর ও বিশ্রি ভাষায় বকাবকি করেন। সাব রেজিষ্ট্রি অফিসে আসা মানুষরা তাই মনে করেন নাইটগার্ড তরিকুল এক অপ্রতিদ্বন্দি  সম্রাট। প্রায় ২০ বছর তরিকুল ইসলাম এ ভাবেই একক রাম রজত্ব কায়েম করে রেখেছেন মহেশপুর সাব-রেজিষ্ট্রি অফিসে। তরিকুল মহেশপুর উপজেলার নেপা ইউনিয়নের সেজিয়া গ্রামের রবিউল কারিকরের ছেলে। বর্তমান মহেশপুর শহরের অভিজাত এলাকা জমিদারপাড়ার মালিপুকুরপাড়ে বসবাস করছেন। সরেজমিন সেজিয়া গ্রাম পরিদর্শন করে জানা গেছে, নাইটগার্ড তরিকুলের পিতার মাঠে ৫/৬ বিঘা জমি ছিল। ৫ ভাই ও ৪ বোনের মধ্যে উক্ত জমি বন্টন হওয়ার পর এখন দু'আড়াই বিঘা জমি থাকতে পারে। এমন তথ্য জানান তরিকুলের প্রতিবেশি নেপা ইউনিয়ন পরিষদের দফাদার শফিকুল ইসলাম। নেপা ইউনিয়ন ভুমি অফিস ও মহেশপুর এসি ল্যান্ড অফিসও তরিকুলের পিতার পৈত্রিক সম্পত্তির তথ্য দিতে পারেনি। তবে মহেশপুর উপজেলা সাব রেজিষ্ট্রি অফিসে তথ্যানুসন্ধান করে জানা গেছে, ২০২০ সালের ৩ ডিসেম্বর একদিনে মহেশপুর পৌর এলাকার ১১২ নং বগা, ১০৮ নং হামিদপুর ও ১১০ নং জলিলপুর মৌজায় ৬ দলিলের (দলিল নং ৯৩২৬, ৯৩২৭, ৯৩২৮, ৯৩২৯, ৯৩৩০ ও ৯৩৩১) মাধ্যমে সাড়ে ১১ বিঘা জমি (৩৮৪.৭৫ শতক) কিনে তুমুল আলোচনায় আসেন নাইটগার্ড তরিকুল। এই জমির দালিলিক মুল্য ৬৮ লাখ ১০ হাজার দেখানো হলেও প্রকৃত দাম কয়েক কোটি টাকা। এদিকে বিপুল পরিমান অর্থ দিয়ে একজন নাইটগার্ডের জমিকেনা নিয়ে হৈচৈ পড়ে যায়। শুরু হয় তর্ক বিতর্ক। উপজেলা পরিষদ চত্বর এলাকার চায়ের দোকানে সমালোচনার ঝড় ওঠে। কোথায় পেলেন এতো টাকা? কি তার আয়ের উৎস? এমন হাজারো প্রশ্নের মধ্যেও তরিকুলের জমি কেনার মিশন কিন্তু থেমে নেই। বিতর্ক এড়াতে তিনি এখন তার ভাইরাভাই মুদির দোকানদার হাফিজুরের নামে জমি কিনে চলেছেন। সম্প্রতি নাইটগার্ড তরিকুল মালিপুকুর পাড়ে ৫০ লাখ টাকা দিয়ে ১০ শতক ও দুইশতক জমিসহ ৩১ লাখ টাকা দিয়ে বাড়ি কিনে ভাইরার নামে রেজিষ্ট্রি করেছেন বলে কথিত আছে। নাইটগার্ড তরিকুলের টাকা আয়ের উৎস কি তা রয়েছে রহস্যময়। অভিযোগ উঠেছে, চাকরী ঝাড়–দার ও নাইটগার্ডের পদে হলেও কশ্চিনকালেও রাতে তিনি অফিস পাহারা দেন না। ঝাড়– দেন না অফিস। অর্থবিত্ত ও টাকার জোরে তিনিই এখন সাবরেজিষ্ট্রি অফিসের রাজাধিরাজ। বিষয়টি নিয়ে মহেশপুর উপজেলা সাব রেজিষ্ট্রার সঞ্জয় কুমার আচার্য্য জানান, একদিনে তরিকুলের সাড়ে ১১ বিঘা জমি কিনেছেন। তিনি এই জমি তার ভাই শফিকুল ইসলামের কাছ থেকে হেবা দলিল করে নেন। তবে নাইটগার্ড তরিকুল অফিসে কোন ঝামেলা বা রাম রাজত্ব চালান না বলে দাবী করে সাবরেজিষ্ট্রার জানান, সে কে যে তার কথায় অফিস চলবে ? ঝিনাইদহ জেলা রেজিষ্ট্রার আসাদুল ইসলাম জানান, আমি যোগদানের পর নাইটগার্ড তরিকুল ইসলামের দুর্ব্যবহারের বিষয়ে অবগত হয়েছি। বিষয়টি আমি তদন্ত করার উদ্যোগ নিয়েছি। এপ্রিল মাসের প্রথম সপ্তাহে আমি সরেজমিন মহেশপুর উপজেলা সাবরেজিষ্ট্রার অফিস তদন্ত করবো। তিনি বলেন আউট সোর্সিং পদ্ধতিতে চাকরী নেওয়া এসব কর্মচারীরা স্থানীয় হওয়ায় তাদের বিরুদ্ধে শক্ত কোন ব্যবস্থা গ্রহন করা যায় না। মাঝেমধ্যে এমন এমন জায়গা থেকে তাদের ব্যাপারে তদ্বীর আসে আমরা তখন নিরুপায় হয়ে পড়ি যোগ করেন জেলা রেজিষ্ট্রার আসাদুল। দুর্নীতি দমন কমিশন যশোর সমন্বিত অফিসের উপ-পরিচালক নাজমুস সায়াদাত বলেন, গত বছর নাইটগার্ড তরিকুলের বিষয়ে একটি অভিযোগ পেয়ে ঢাকায় পাঠিয়েছিলাম। সেখান থেকে কোন নির্দেশনা পায়নি। তিনি বলেন নতুন করে অভিযোগ দিলে তদন্ত করে দেখবো। নাইটগার্ড তরিকুল ইসলাম তার সম্পদ নিয়ে বলেন, "অনেকেই আমার সম্পদের কথা প্রচার করেন, কিন্তু আমার কিছুই নেই। ভাইকে বিদেশ যেতে টাকা দিয়েছিলাম। বিদেশে গিয়ে সে জমি কিনেছিল। পরে সে তার নামে থাকা জমি হেবা দলিল করে নিয়েছি। তিনি বলেন, আমি একটি ঐতিহ্যবাহী পরিবারের ছেলে। আইএ পাশ করেছি। কারি মানুষ, ৬ বছর মসজিদে আজান দিয়েছি। পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ পড়ি। আমার অপরাধ আমি নাইটগার্ডের চাকরী করি। এটা মানুষের চক্ষুশুল। আমি কারো কাছ থেকে ঘুষ নিয়েছি কেও প্রমান দিতে পারবেনা। শত্রæতা করে আমার বিরুদ্ধে এসব অভিযোগ দিয়েছে। এই রটনার সঙ্গে দলিল লেখকরাই জড়িত। এখানে অন্তত ২০ জন দলিল লেখক আছে যারা সাংবাদিকতাও করেন। আমিও জব টিভির কার্ড নিয়েছি। ২/১ মাসের মধ্যে চাকরী ছেড়ে সাংবাদিক হবো। তরিকুল বলেন আমার আয়কর ফাইল আছে যার টিন নং ১৮৫৫০৮৮৮৪৩০৫। গত বছর আমি ৩ হাজার টাকার আয়কর দিয়েছি। এই চাকরীতে আমার চলে না বলে আমি "আমানা" গ্রæপের ডিলার নিয়েছি"। এদিকে তিন হাজার টাকার আয়কর দেওয়া নিয়ে ঝিনাইদহ সার্কেলের অতিরিক্ত সহকারী কর কমিশনার অনাথ বন্ধু সাহা জানান, বছরে ৩ লাখের উপরে আয় হলেই কেবল একজন ব্যক্তি ৩ হাজার টাকা আয়কর দিতে পারেন। অথচ নাইটগার্ড তরিকুল বছরে সাকুল্যে বেতন পান মাত্র ২১ হাজার ৬০০ টাকা। তিনি আমানা গ্রুপের ডিলারশীপ নিয়েছেন এক বছর। সে হিসেবে একের পর এক তার জমি কেনা ও আয়ের উৎস্য নিয়ে কিন্তু প্রশ্ন থেকেই যায়।

বিটিসিএল-এর নতুন অ্যাপ ‘আলাপ’, কল করা যাবে মোবাইলেও

  বিটিসিএল-এর নতুন অ্যাপ ‘আলাপ’, কল করা যাবে মোবাইলেও
বিটিসিএল-এর নতুন অ্যাপ ‘আলাপ’
নিউজ ডেস্কঃ বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ কোম্পানি লিমিটেড (বিটিসিএল) এর নতুন উদ্বোধন করা ওটিটি (ওভার দ্য টপ) কলিং সেবা ‘আলাপ’ থেকে কল করা যাবে মোবাইল বা ল্যান্ডলাইনে। প্রতি মিনিটে ৩০ পয়সা কলরেটে কথা বলা যাবে।
এছাড়া, মোবাইল বা ল্যান্ডফোন থেকে ‘আলাপ’ ব্যবহারকারীকেও ফোন দেওয়া যাবে। ইন্টারনেট সংযোগ থাকলেই আলাপ থেকে আলাপ কথা বলা এবং চ্যাট করা যাবে বিনামূল্যে।
ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার গতকাল রবিবার (৪ এপ্রিল) অ্যাপটির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেছেন। ইতোমধ্যে গুগল প্লে-স্টোর থেকে এক লাখের বেশি বার অ্যাপটি ডাউনলোড করা হয়েছে।
মন্ত্রণালয়ের প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, আলাপ ইন্সটল করলেই গ্রাহক তার নিজের বর্তমান মোবাইল নম্বরের সঙ্গে মিলিয়ে একটি নতুন আলাপ নম্বরের মালিক হবেন।
'আলাপ' অ্যাপটি সরাসরি ডাউনলোড করুন প্লে-স্টোর থেকে। 

স্বপ্নের ঢেউ সমাজকল্যাণ সংস্থা" কুলাউড়া উপজেলা শাখার অভিষেক অনুষ্ঠান সম্পন্ন

স্বপ্নের ঢেউ সমাজকল্যাণ সংস্থা" কুলাউড়া উপজেলা শাখার অভিষেক অনুষ্ঠান সম্পন্ন

মোঃরেজাউল ইসলাম শাফি,কুলাউড়া উপজেলা প্রতিনিধিঃ ৪ঠা এপ্রিল ২০২১ইং রবিবার বিকাল ৪ ঘটিকায় কুলাউড়া পৌরসভার হল রুমে সিলেট বিভাগের সর্ব বৃহৎ সামাজিক সংগঠন "স্বপ্নের ঢেউ সমাজকল্যাণ সংস্থা" কুলাউড়া উপজেলা শাখার অভিষেক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। 

কুলাউড়া উপজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক, সাঈদ আহমদ এর সঞ্চালনায় ও সভাপতি, মোঃ জাবের হুসাইন এর সভাপতিত্বে, 
উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কুলাউড়া পৌরসভার মেয়র, অধ্যক্ষ সিপার উদ্দিন আহমদ। 

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কুলাউড়া উপজেলা পরিষদের ভাইস-চেয়ারম্যান, কাজী মাও.ফজলুল হক খান সাহেদ। 
প্রধান আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা ও কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি সৈয়দ শাহেদ আলী। 

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কুলাউড়া পৌরসভার ৩ং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মঞ্জুর আলম চৌধুরী খোকন। 

কুলাউড়া উপজেলা আল ইসলাহ যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক, এহসানুল মাহবুব জাকির৷ 

বিশিষ্ট প্রবাসী কমিউনিটি নেতা ও সমাজ সেবক সৌদি প্রবাসী মাহতাব মিয়া। 

সাপ্তাহিক সংলাপ পত্রিকার সম্মনয়ক, গুলজার হোসেন উজ্জল। 

সাপ্তাহিক সংলাপ পত্রিকার স্টাফ রিপোর্টার, হাবিবুর রহমান সুজন। 

সংগঠনের মৌলভীবাজার জেলা শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক হাফেজ মিনহাজ আহমদ প্রমূখ। 

আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ও বিশেষ অতিথিবৃন্দ সংগঠনের বিগত দিনের কার্যক্রম এর প্রসংশা করেন ও আগামী দিনে বিভিন্ন সামাজিক কাজে সার্বিক সহযোগিতার আশ্বাস দেন।

বিশ্ববাসীর সকলের মঙ্গলের জন্য মোনাজাতের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠান সমাপ্তি হয়।

কুলাউড়ায় নতুন করে করোনায় আক্রান্ত ৪ জন

কুলাউড়ায় নতুন করে করোনায় আক্রান্ত ৪ জন

মোঃরেজাউল ইসলাম শাফি,কুলাউড়া উপজেলা প্রতিনিধিঃ মহামারি করোনা ভাইরাসের  আক্রমনে কুলাউড়ায়  ৫ বছরের শিশুসহ একই পরিবারের ৪ জনের কোভিড-১৯ শনাক্ত হয়েছে।  করোনাক্রান্ত ৪ জন উপজেলার ভাটেরা ইউনিয়নের অধিবাসী।

কুলাউড়া উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্রে জানা যায়, করোনাক্রান্ত শিশুসহ একই পরিবারের ৪ জন গত ২ এপ্রিল মৌলভীবাজার ২৫০ শয্যা হাসপাতালে স্যাম্পল দেন। স্যাম্পল দেয়ার পর রোববার (৪ এপ্রিল) রাতে ৪ জনেরই রিপোর্ট কুলাউড়া হাসপাতালে পজিটিভ আসে। পরে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তাদের নিজ বাড়িতে আইসোলেশনে থাকার পরামর্শ দিয়েছেন বলে জানা গেছে।

শীতলক্ষ্যা নদীতে কার্গো জাহাজের ধাক্কায় অর্ধশত যাত্রী নিয়ে লঞ্চডুবি

শীতলক্ষ্যা নদীতে কার্গো জাহাজের ধাক্কায় অর্ধশত যাত্রী নিয়ে লঞ্চডুবি

নারায়ণগঞ্জ, সিপনঃ স্বজনদের খোঁজে নদীর পাড়ে নির্ঘুম রাত কাটিয়েছেন পরিবারের সদস্যরা। এ সময় কান্নায় ভেঙে পড়েন অনেকে।
মোবাইল ফোনে ধারণ করা ছবিতে দেখা যায়, বড় একটি কার্গোজাহাজ যাত্রীবাহী একটি লঞ্চকে ধাক্কা দিয়ে পিষে চলে যায়। আর এতেই আবারো ঘটে নৌদুর্ঘটনা। ঘটে প্রাণহানি।

স্বজনহারাদের আর্তনাদে ভারী হয়ে ওঠে শীতলক্ষ্যার তীর। নিখোঁজদের সন্ধানে এদিক-ওদিক ছোটাছুটি শুরু করেন স্বজনরা। কান্নায় ভেঙে পড়েন তারা।
গতকাল রোববার বিকেলে নারায়ণগঞ্জ থেকে মুন্সিগঞ্জের দিকে যাচ্ছিল দোতলা ছোট আকারের যাত্রীবাহী লঞ্চ 'সাবিত আল আসাদ'। মদনগঞ্জ এলাকায় নির্মাণাধীন তৃতীয় শীতলক্ষ্যা সেতু এলাকায় পৌঁছালে এসকে-৩ নামের একটি কার্গো জাহাজের ধাক্কায় সেটি ডুবে যায়। দুর্ঘটনার পর লঞ্চের অনেক যাত্রী সাঁতরে তীরে উঠে আসলেও এখনো খোঁজ মেলেনি অনেকের।
বৈরী আবহাওয়ার কারণে উদ্ধারকাজে বেগ পেতে হয় কোস্টগার্ড ও নৌবাহিনী সদস্যদের। পরে রাত সাড়ে ৯টার দিকে উদ্ধারকারী জাহাজ প্রত্যয় পৌঁছে কাজ শুরু করেছে। রাত ১০টার দিকে জাহাজটির অবস্থান শনাক্ত করা হয়। এরপর একেএকে উদ্ধার করা হয় মরদেহ।
বিআইডব্লিউটিএর চেয়ারম্যান কমডোর গোলাম সাদেক বলেন, ডুবে যাওয়া লঞ্চটিতে অর্ধশত যাত্রী ছিলেন।গত বছর জুনে বুড়িগঙ্গায় একইভাবে মর্নিং বার্ড-২ নামে একটি লঞ্চডুবে ৩৪ জনের প্রাণহানি ঘটেছিল