পৌরসভা নির্বাচনে মহিলা প্রার্থীর নাম ঘোষণা

পৌরসভা নির্বাচনে  মহিলা প্রার্থীর নাম ঘোষণা




মোঃ সবুজ মিয়া, বগুড়া প্রতিনিধিঃ আগামী বগুড়া পৌরসভার নির্বাচনে সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর পদে প্রতিদ্বন্দ্বীতার জন ৪ জন প্রার্থীর নাম ঘোষনা করেছে বগুড়া জেলা মহিলা আওয়ামীলীগ।দলীয় কার্যালয়ে জেলা মহিলা আওয়ামীলীগের মত বিনিময় সভায় সংগঠনের সভাপতি সাবেক সংসদ সদস্য অধ্যক্ষ খাদিজা খাতুন শেফালী এই ৪ প্রার্থীর নাম ঘোষণা করেন।

এসময় তিনি বলেন বগুড়া পৌরসভার সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর পদে পতিদ্বন্দ্বীতার জন অবশিষ্ট ৩ টি ওয়ার্ডের প্রাথীদের নামও শিঘ্রই ঘোষনা করা হবে।মহিলা আওয়ামীলীগ ঘোষিত প্রার্থীরা হলেন, বগুড়া পৌরসভার সংরক্ষিত মহিলা ৪.৫.৬ নং ওয়ার্ডের মিনিয়ারা বেগম, ৭.৮.৯ নং ওয়ার্ডের হোসনে আরা হাসি, ১০.১১.১২ নং ওয়ার্ডের ফাতেমা বেগম ছন্দ ও ১৬.১৭.১৮ নং ওয়ার্ডে স্বপ্না চৌধুরী।

সভায় বক্তব্য রাখেন ও উপস্থিত ছিলেন, জেলা মহিলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি চামেলী খাতুন, রুমু আজিজ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক স্বপ্না চৌধুরী, সাগঠনিক হাসনা খাতুন, দপ্তর সম্পাদক নাজমা পারভিন, শিল্প ও বাণিজ্য সম্পাদক কহিনুর বেগম, সদস্য ফাতেমা বেগম ছন্দ, পিংকি, শহর শাখার সভাপতি বিলকিছ বেগম, সাধারণ সম্পাদক হোসনে আরা হাসি, রেশমা, মাহফুজা, রেকসনা প্রমূখ।

৭৫ কোটি টাকা মূল্যের বিষ্ণুমূর্তি পাহাড়পুর বৌদ্ধ বিহার এ হস্তান্তর

 ৭৫ কোটি টাকা মূল্যের বিষ্ণুমূর্তি পাহাড়পুর  বৌদ্ধ বিহার এ হস্তান্তর


রহমতউল্লাহ আশিকুজ্জামান নুর বদলগাছী নওগাঁঃর‌্যাব-৫ জয়পুরহাট ক্যাম্প কর্তৃক ৭৫ কোটি টাকা মূল্যের হাজার বছরের প্রাচীন পাল আমলের অমূল্য প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শন একটি  কষ্টিপাথরের বিষ্ণুমূর্তি উদ্ধার করা হয়েছে।

গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব-৫ রাজশাহীর সিপিসি-৩ জয়পুরহাট ক্যাম্পের একটি আভিযানিক দল কোম্পানী কমান্ডার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এম. এম. মোহাইমেনুর রশিদ পিপিএম-সেবা এর নেতৃত্বে অদ্য ০৮ নভেম্বর রবিবার বিকালে জেলার আক্কেলপুর  থানাধীন দেওড়া এলাকা হতে প্রত্নতাত্ত্বিক অধিদপ্তরের সহযোগিতায় ৩৮০ কেজি ওজনের বিষ্ণুমূর্তি উদ্ধার করেন। 

প্রত্নতাত্ত্বিক অধিদপ্তরের মতানুসারে পাল বংশীয় রাজা মহীপালের রাজত্বকাল (৯৯৫-১০৪৩ খ্রীঃ) আমলের বিষ্ণুমূর্তিটির গায়ে খোদাই করা শিল্পকর্ম হতে প্রতীয়মান হয় যে এটি কুষান সাম্রাজ্যের প্রাচীন মূর্তিশিল্পের আদলে তৈরীকৃত।ইতিপূর্বে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের বাঁকুড়া জেলা ও ভূতপূর্ব বৃহত্তর বগুড়া জেলার দেওড়া এলাকা হতে এই শিল্পকর্মের আদলে তৈরী প্রত্নসম্পদ উদ্ধার করা হলেও র‌্যাব কর্তৃক উদ্ধারকৃত প্রত্নসম্পদসমূহের মধ্যে এই ধরনের বিষ্ণুমূর্তি এটাই প্রথম।উক্ত প্রত্নসম্পদের প্রাক্কলিত মূল্য প্রায় ৭৫ কোটি টাকা। উদ্ধারকৃত মূর্তিটি রাষ্টীয় অমূল্য সম্পদ হওয়ায় তা নওগাঁ জেলার বদলগাছি উপজেলার পাহাড়পুর বৌদ্ধবিহার জাতীয় জাদুঘর কর্তৃপক্ষের নিকট হস্তান্তর করা হয়।

পাহাড়পুর বৌদ্ধবিহার জাদুঘরের কাস্টেডিয়ান ফজলুল করিম বলেন, দেওড়া গ্রামে ব্রজেন্দ্রনাথ সাহার বাড়িতে মুর্তিটি ছিল। সেটি র‌্যাব উদ্ধার করেছে এবং মূর্তিটি ঐতিহাসিক পাহাড়পুর বৌদ্ধবিহার জাদুঘরে হস্তান্তর করেছে।

কুলাউড়ায় সিএনজি-কাভার্ড ভ্যানের মুখোমুখি সংঘর্ষ, আহত ৫

 কুলাউড়ায় সিএনজি-কাভার্ড ভ্যানের মুখোমুখি সংঘর্ষ, আহত ৫

মোঃরেজাউল ইসলাম শাফি, কুলাউড়া উপজেলা প্রতিনিধিঃমৌলভীবাজারের কুলাউড়া উপজেলায় সিএনজি ও কাভার্ড ভ্যান অটোরিকশার মুখোমুখি সংঘর্ষে ১ জন সরকারি কর্মকর্তাসহ ৫ জন গুরুতরভাবে আহত হয়েছেন। ৯ নভেম্বর সোমবার সন্ধ্যায় উপজেলার কৌলা এলাকায় এই ঘটনা ঘটে। এতে দুমড়ে মুছড়ে যায় সিএনজিটি।

জানা যায়, কুলাউড়া-মৌলভীবাজার সড়কের কৌলা এলাকায় সিএনজি ও কাভার্ড ভ্যান মুখোমুখি সংঘর্ষে সিএনজি যাত্রী জুড়ী উপজেলা আনসার-ভিডিপি (ভার:) কর্মকর্তা সীতা রানী দত্ত ছাড়াও অন্য যাত্রী জাকির হোসেন, লিটন ও চালক সফিকসহ ৫ জন গুরুতর আহত হন।খবর পেয়ে কুলাউড়া থানা পুলিশ ও কুলাউড়া ফায়ার সার্ভিস দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছে আহতদের উদ্ধার করে কুলাউড়া হাসপাতালে নিয়ে যান। পরে কর্তব্যরত ডাক্তার আহত ৫ জনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য সিলেট হাসপাতালে রেফার্ড করেন।

নড়াইলে জামাই বাড়ি থেকে ফেরা হলো না শাশুড়ীর!

নড়াইলে জামাই বাড়ি থেকে ফেরা হলো না শাশুড়ীর!

 


মো: আজিজুর বিশ্বাস স্টাফ রিপোর্টার নড়াইল।।

নড়াইলে জামাই বাড়ি বেড়াতে এসে নিজ বাড়ি ফেরার পথে সড়ক দুর্ঘটনায় সাফিয়া আক্তার (৫৪) নামে এক মহিলা নিহত হয়েছেন ও চারজন আহত হয়েছে। নিহত সাফিয়া জামাই বাড়ি থেকে নিজবাড়ি যশোরের বাঘারপাড়া উপজেলার বাগডাঙ্গা গ্রামে ফিরছিলেন। এসময় দুই শিশুসহ আরো চারজন গুরুতর আহত হয়েছে বলে জানা যাই।জানা গেছে,(৯ নভেম্বর) সোমবার বিকাল সাড়ে ৫টার দিকে নড়াইল-যশোর সড়কের করিমপুর এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটেছে।

পুলিশ ও নিহতের পারিবার সূত্রে জানা যায়, নিহত সাফিয়া আক্তার তার কয়েকজন আত্মীয় স্বজন নিয়ে মেয়ের শ্বশুরবাড়ি নড়াইল সদর উপজেলার তুলারামপুর গ্রামের গোলাম রসুলের বাড়ি বেড়াতে এসেছিলেন।সোমবার বিকালে ইজিবাইক যোগে যশোরের বাঘারপাড়া উপজেলার বাগডাঙ্গা গ্রামে যাচ্ছিলেন। পথিমধ্যে করিমপুর এলাকায় পৌছাঁলে যশোর থেকে নড়াইলগামী একটি যাত্রীবাস ইজিবাইককে জোরে ধাক্কা দেয়।এতে ইজিবাইকের যাত্রীরা ছিটকে রাস্তার ওপর পড়ে যায়। পরে পুলিশ ও স্থানীয় লোকজন তাদেরকে উদ্ধার করে দ্রুত নড়াইল সদর হাসপাতালে নিয়ে যান।

সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক বিভাষ চন্দ্র সাফিয়াকে মৃত ঘোষণা করেন। নিহত সাফিয়া বাগডাঙ্গা গ্রামের নূর মিয়ার স্ত্রী।এছাড়া গুরুতর আহত হয়েছেন বাঘারপাড়া উপজেলঅর অদিপুরগ্রামের রোকনের স্ত্রী নূরজাহান (৪০), রোকনের মেয়ে হাবিবা (১০), জিহাদের স্ত্রী তামান্না (২৫), ও মানিকের কন্যা সুমাইয়া (৩বছর)।এদের মধ্যে তামান্নার অবস্থায় গুরুতর হওয়ায় এ সংবাদ লেখা পর্যন্ত তাকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে।

কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ই-নথি বিষয়ক প্রশিক্ষণ

 কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ই-নথি বিষয়ক প্রশিক্ষণ


মোহাঃ ফরহাদ হোসেনঃ কয়রা(খুলনা) প্রতিনিধিঃ কয়রা উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে এবং তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি অধিদপ্তরের সহযোগিতায় উপজেলা পর্যায়ে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ২ দিন ব্যাপী ই-নথি বিষয়ক প্রশিক্ষণ কর্মশালা শুরু হয়েছে। কয়রা উপজেলা নির্বাহী অফিসার অনিমেষ বিশ্বাস গত ৯ নভেম্বর সকাল ১০ টায় উপজেলা পরিষদ সম্মেলন কক্ষে এ কর্মশালা উদ্বোধন করেন। উদ্বোধন শেষে উপজেলা রিসোর্স অফিসার মো. নাজমূল হুদা’র পরিচালনায় কয়রা উপজেলা নির্বাহী অফিসার অনিমেষ বিশ্বাস শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন। শুভেচ্ছা বক্তব্য শেষে প্রশিক্ষণ কার্যক্রম পরিচালনা করেন উপজেলা সহকারি প্রোগ্রামার, পাইকগাছা মৃদুল কান্তি দাস, উপজেলা সহকারি প্রোগ্রামার ও কয়রা লিডামপল বালা। প্রশিক্ষণ কর্মশালায় উপজেলা পরিষদের বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

লাকসাম দুই কিশোরকে অপহরণের অভিযোগে গ্রেফতার-১

লাকসাম দুই কিশোরকে অপহরণের অভিযোগে  গ্রেফতার-১


লাকসাম, কুমিল্লা জেলা প্রতিনিধিঃ লাকসামে রাব্বি প্রধান (১৬) ও মাসুদ হোসেন (১৪) নামে দুই কিশোরকে অপহরণের অভিযোগে জুয়েল নামে এক যুবককে গ্রেফতার করা হয়েছে। সোমবার (৯ নভেম্বর) লাকসাম রেলওয়ে জংশন প্লাটফর্ম থেকে স্থানীয়দের সহযোগিতায় তাকে গ্রেফতার করা হয়। 

অপহৃত রাব্বি প্রধান চাঁদপুর জেলার কচুয়া উপজেলার আয়মা গ্রামের প্রবাসী আইয়ুব আলী প্রধানের একমাত্র ছেলে ও মাসুদ হোসেন একই জেলার মতলব উত্তর উপজেলার দৌলতপুর গ্রামের সফিকুল ইসলামের ছেলে। অপহরণকারী জুয়েলের বাড়ি কুমিল্লা কোতয়ালী থানার খেতসার এলাকায়।

অপহরণকারীদের কবল থেকে পালিয়ে আসা কিশোর মাসুদ হোসেন জানায়, গত বৃহস্পতিবার (৫ নভেম্বর) সন্ধ্যায় মামাতো ভাই রাব্বি প্রধান ও আমি দোখাইয়া চাঁদপুর দরবার শরীফের ওরশে যাওয়ার জন্য লাকসাম জংশনে আসলে জুয়েল নামের ওই ব্যক্তির সাথে পরিচয় হয়। তিনি আমাদেরকে ওরশে পৌঁছে দেয়ার কথা বলে একটি অটোরিক্সায় তুলে নেন। কিছুদূর যাওয়ার পর একটি মাঠের মধ্যখানে নিয়ে যাওয়ার সময় আমার সন্দেহ হলে কৌশলে পালিয়ে দৌঁড়ে এসে স্থানীয় বরইগাঁও এলাকার লোকজনকে বিষয়টি জানালে তারা রাব্বীকে আশেপাশে খোঁজাখুঁজি করেন। এরই মধ্যে জুয়েল রাব্বিকে নিয়ে পালিয়ে যায়। অপহরণের তিন দিন পর গতকাল রবিবার (৮ নভেম্বর) রাতে অপহৃত কিশোর রাব্বিকে শহরের বড়তুপা মাছের ঘের থেকে অজ্ঞান অবস্থায় উদ্ধার করা হয়।

পালিয়ে আসা কিশোর মাসুদ সোমবার (৯ নভেম্বর) আত্মীয়-স্বজনকে সাথে নিয়ে অপহরণকারী জুয়েলকে লাকসাম রেলওয়ে জংশন প্লাটফরমে মাদকসেবন অবস্থায় দেখে স্থানীয়দের সহযোগিতায় তাকে আটক করে। পরে লাকসাম থানা পুলিশ জুয়েলকে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে যায়।

লালমনিহাট জেলা বাস মাইক্রোবাস মিনিবাস ইউনিয়নের মানববন্ধন

 লালমনিহাট জেলা বাস মাইক্রোবাস মিনিবাস ইউনিয়নের মানববন্ধন

রশিদুল ইসলাম রিপন, লালমনিরহাট জেলা প্রতিনিধি,  লালমনির হাট জেলা বাস মাইক্রোবাস মিনিবাস ইউনিয়ানের মানববন্ধন আজ সকাল ১১ ঘটিকায়  জেলার মিশোন মোড়ে অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত মানববন্ধনে শ্রমিক জনতা অংশ গ্রহন করে।

মানববন্ধনে বক্তব্য দেন লালমনির হাট জেলা ট্রাক লড়ি কাভার্ড ভ্যান ইউনিয়ানের দপ্তর সম্পাদক রেজাউল করিম প্রিন্স, তিনি বলেন বহিরাগত লোক দিয়ে ট্রাক লড়ি কাভার্ড ভ্যান ইউনিয়ান নিয়ন্ত্রণ করছে।    লালমনির হাট জেলা ট্রাক লড়ি কাভার্ড ভ্যান শ্রমিক ইউনিয়নের   সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম। তিনি আরও বলেন আমরা আবুল কালামের সন্ত্রাসী কার্যক্রমে অতিষ্ঠ ওনার সেন্টিগেটের কারনে স্থানীয় শ্রমিকরা কাজ পাচ্ছে না। তাই ট্রাক লড়ি কাভার্ড ভ্যান ইউনিয়ানের সাধারণ সম্পাদক আবুল কালামকে সর্বসম্মতি ক্রমে অবাঞ্ছিত ঘোষনা করেন। উক্ত মানববন্ধনে বাস শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আমিনুর ইসলাম বক্তব্য রাখেন, তিনি বলেন ট্রাক লড়ি কাভার্ড ভ্যান ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক আবুল কালামের কারণে শ্রমিক রা কাজ পাচ্ছে না তাই তিনি কালামের প্রতি অসন্তুষ্টি প্রকাশ করেন।আরও বক্তব্য রাখেন বাস মিনিবাস মাইক্রো বাস ও কোচ ইউনিয়ানের নেতৃ বৃন্দ।

সম্পাদকের বিরুদ্ধে অভিযোগ ,লোহাগড়ায় মানবন্ধন

 সম্পাদকের বিরুদ্ধে অভিযোগ ,লোহাগড়ায় মানবন্ধন

মোঃ আজিজুর বিশ্বাস স্টাফ রিপোর্টার নড়াইল। দৈনিক সকালের সময় পত্রিকার সম্পাদক নুর হাকিমসহ ৫ জনের বিরুদ্ধে সাইবার ট্রাইবুন্যালে অভিযোগ দাখিলের প্রতিবাদে নড়াইলের লোহাগড়ায় মানবন্ধন পালিত হয়েছে। ৯/১১/২০২০ তারিখ : সোমবার বিকাল ৪ টায় লোহাগড়া উপজেলা পরিষদের প্রধান ফটকের সামনে অনুষ্ঠিত মানবন্ধনে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন নিরাপদ সড়ক আন্দোলনের চেয়ারম্যান ও সাংবাদিক সৈয়দ খায়রুল আলম, সাংস্কৃতিক সংগঠক বি এম লিয়াকত হোসেন, সিনিয়র সাংবাদিক রূপক মুখার্জি, শিমুল হাসান, শরিফুল ইসলাম, ওবায়দুর রহমান, মো: পিকুল আলম, মনির খান, মো:আজিজুর বিশ্বাস, মো: আরমান মিয়াসহ প্রমুখ। বক্তারা, বহু অপকর্মের হোতা মহিলা যুবলীগের সাধারন সম্পাদক শামীমা নূর পাপিয়ার বিরুদ্ধে সংবাদ প্রকাশ করায় পাপিয়ার সহযোগী জনৈক  মুস্তারি  মোর্শেদ স্মৃতি নামের একজন মহিলা দৈনিক সকালের সময় এর সম্পাদক নুর হাকিম সহ ৫ জনের নামে সাইবার ট্রাইবুন্যাল আদালতে অভিযোগ দাখিল করায় লোহাগড়ার সাংবাদিক সমাজ তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান। বক্তারা প্রকৃত সত্য উদঘাটন করে অবিলম্বে উক্ত অভিযোগ প্রত্যাহারের দাবি জানান। 

আল আরাফাহ ইসলামী ব্যাংকের আউটলেট শাখার উদ্বোধন বড়লেখায়

 আল আরাফাহ ইসলামী ব্যাংকের আউটলেট শাখার উদ্বোধন বড়লেখায়

আকরাম হোসাইন মৌলভীবাজার জেলা প্রতিনিধি :: মৌলভীবাজারের বড়লেখা উপজেলার পৌরশহরের দক্ষিণবাজারে সোমবার (০৯ নভেম্বর) দুপুর ১২ ঘটিকায় প্রধান অতিথি হিসেবে আল আরাফাহ ইসলামী ব্যাংকের আউটলেট শাখার উদ্বোধন করেছেন উপজেলা চেয়ারম্যান সোয়েব আহমদ।

আল আরাফা ইসলামী ব্যাংক বিয়ানীবাজার শাখার ম্যানেজার ও এসপিও খালেদ মুহাম্মদ সয়ফুল আলমের সভাপতিত্বে ও বড়লেখা আউটলেট শাখার ম্যানেজার শাহেদ আহমদের পরিচালনায় ব্যাংক ভবনে অনুষ্টিত আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মোহাম্মদ তাজ উদ্দিন, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান রাহেনা বেগম হাসনা, আল আরাফা ইসলামী ব্যাংকের এভিপি ও সিলেট আম্বরখানা শাখার ম্যানেজার এএমএম গৌছ উদ্দিন সিদ্দিকী, পদ্মা লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানীর সিলেট আম্বরখানা শাখার ইনচার্জ আতিকুর রহমান, প্রিন্সিপাল অফিসার সালিকুর রহমান, ব্যবসায়ী হেলাল উদ্দিন প্রমুখ।

সাতক্ষীরা পুলিশ সুপার এর হস্তক্ষেপে সমিতির সঞ্চয়কৃত টাকা ফেরত পেতে শুরু করেছে গ্রাহকেরা

 সাতক্ষীরা পুলিশ সুপার এর হস্তক্ষেপে সমিতির সঞ্চয়কৃত টাকা ফেরত পেতে শুরু করেছে গ্রাহকেরা

আজহারুল ইসলাম সাদী, স্টাফ রিপোর্টারঃসাতক্ষীরার কালিগঞ্জ থানা পুলিশের হস্তক্ষেপে অবশেষে দেউলিয়া হয়ে যাওয়া হামিম ও প্রমিস সমিতিতে সঞ্চয়কৃত টাকা ফেরত পেতে শুরু করেছেন ভুক্তভোগী গ্রাহকেরা।সাতক্ষীরার পুলিশ সুপার মোস্তাফিজুর রহমানের নির্দেশে কালিগঞ্জ থানার ওসি দেলোয়ার হুসেনের কঠোর পদক্ষেপে সোমবার (৯ নভেম্বর) থেকে সঞ্চয়ের টাকা ফেরত পেতে শুরু করেন তারা।

হামিম ও প্রমিস নামে একটি সংস্থা  কালিগঞ্জে সমিতি খুলে দীর্ঘ  ৫ বছর ধরে ঋণ প্রদান ও সঞ্চয় আদায় করে আসছিল। সংস্থাটির প্রলোভনে পড়ে উপজেলার ভাড়াশিমলা ইউনিয়নের কুকুডাঙ্গা এলাকার খেটে খাওয়া ৫৬জন মানুষ উক্ত সমিতিতে টাকা জমাতেন। ৫ বছরে তারা প্রায় ২৩ লক্ষ টাকা সঞ্চয় করেছেন সমিতিটিতে।একপর্যায়ে সমিতিটি দেউলিয়া হয়ে যাওয়ায় এলাকার খেটে খাওয়া মানুষ জমাকৃত টাকা ফেরত না পেয়ে দিশেহারা হয়ে পড়েন।

তারা বিভিন্ন দ্বারে দ্বারে ঘুরেও কোন প্রতিকার না পেয়ে ভুক্তভোগী মানুষ সাতক্ষীরার পুলিশ সুপার বরাবর একটি অভিযোগ দায়ের করেন।অভিযোগ পেয়ে পুলিশ সুপার মোস্তাফিজুর রহমান কালিগঞ্জ থানার ওসি দেলোয়ার হুসেনকে বিষয়টি তদন্ত করার নির্দেশ দেন।

কালিগঞ্জ থানার ওসি দেলোয়ার হুসেনের নেতৃত্বে এসআই চিনময় মন্ডল টানা তিনদিন প্রচেষ্টা চালিয়ে সমিতির সভাপতি, সেক্রেটারি, কোষাধ্যক্ষ, স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও সমিতির ৫৬ জন সদস্যকে একত্রিত করে পাওয়া টাকা আদায়ের প্রক্রিয়া শুরু করেন।সোমবার (নভেম্বর) কালিগঞ্জ থানা চত্ত্বরে ভুক্তভোগী ৫৬জনের মাঝে ৫ হাজার করে টাকা ফেরত প্রদান করে সমিতির লোকজন। এছাড়া বাকী টাকা ডিসেম্বর মাসের মধ্যে পরিশোধ করবে বলে সমিতির সভাপতি মুচলেকা দেন।এ প্রসঙ্গে কালিগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ  (ওসি) দেলোয়ার হুসেন জানান, পুলিশ সুপার মহোদয়ের নির্দেশে আমরা বিষয়টি তদন্ত শুরু করি। পুলিশের প্রচেষ্টায় টাকা ফেরত না পেয়ে দিশেহারা হয়ে পড়া পরিবারগুলোকে তাদের পাওনা টাকা ফেরত পেতে শুরু করেছে।এ ব্যাপারে ভুক্তভোগীরা জানান আমরা আন্তরিক ধন্যবাদ জ্ঞাপন করছি সাতক্ষীরা'র মানবিক পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমান, কালিগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি)  দেলোয়ার হুসেন, সহ থানার অনান্য অফিসার দের প্রতি।

ময়মনসিংহের তারকান্দায় পুত্রবধূ কে ধর্ষণের অভিযোগে শশুরের বিরুদ্ধে থানায় মামলা

ময়মনসিংহের তারকান্দায় পুত্রবধূ কে ধর্ষণের অভিযোগে শশুরের বিরুদ্ধে থানায় মামলা

স্টাফ রিপোর্টারঃ আর.জে মিজানুর রহমান ইমনঃ ময়মনসিংহের তারাকান্দা উপজেলার ০১নং সদর ইউনিয়নে, এক সন্তানের জননী পুত্রবধূকে (২০) ধর্ষণের অভিযোগে শশুরের বিরুদ্ধে আজ (৯নভেম্বর) সোমবার তারাকান্দা থানায় মামলা হয়েছে । জানা যায়, পিঠাসূ তা গ্রামে এক সন্তানের জননী গৃহবধু (২০) এর স্বামী স্থানীয় স’মিলের শ্রমিক ছিল, সে বাক প্রতিবন্ধী । সাড়াদিন ও গভীর রাত পর্যন্ত কাজে ব্যস্ত থাকার সুযোগে তার পিতা এবং গৃহবধূর শশুর রহুল আমিন (৫৫) গত বৃহস্পতিবার রাতে ঘরে ঢুকে ধর্ষণ করে । আজ সোমবার বিকেলে ধর্ষিতা গৃহবধূ বাদী হয়ে শশুর রুহুল আমিনের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগে থানায় মামলা দায়ের করেছে ।

কার্তিক চন্দ্র দাশ স্মৃতিফুটবল টূর্নামেন্টের ফাইনাল খেলায় বিউটি খেলাঘর চ্যাম্পিয়ন

 কার্তিক চন্দ্র দাশ স্মৃতিফুটবল টূর্নামেন্টের ফাইনাল খেলায় বিউটি খেলাঘর চ্যাম্পিয়ন

আহসান উল্লাহ বাবলু আশাশুনি সাতক্ষীরা  প্রতিনিধিঃ আশাশুনির শোভনালী ইউনিয়নের সরাপপুরে স্বর্গীয় কার্তিক চন্দ্র দাশ স্মৃতি নক আউট ফুটবল টূর্নামেন্টের ফাইনাল খেলায় সাতক্ষীরা বিউটি খেলাঘর চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করেছে। সোমবার বিকালে সরাপপুর ইউনাইটেড মাধ্যমিক বিদ্যালয় মাঠে এ খেলা অনুষ্ঠিত হয়। সরাপপুর অগ্রনী যুব সংঘের আয়োজনে রাজ্যেশ্বর দাশের পৃষ্ঠপোষকতায় ও সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন সাতক্ষীরা জেলা আওয়ামীলীগের সেক্রেটারী ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব নজরুল ইসলাম। সম্মানিত অতিথির বক্তব্য রাখেন আশাশুনি উপজেলা চেয়ারম্যান এবিএম মোস্তাকিম। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন আশাশুনি থানা অফিসার ইনচার্জ গোলাম কবির, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান অসীম বরণ চক্রবর্তী, ফিংড়ী ইউপি চেয়ারম্যান শামছুর রহমান, শোভনালী ইউপি চেয়ারম্যান প্রভাষক ম মোনায়েম হোসেন, শ্রীউলা ইউপি চেয়ারম্যান আবু হেনা সাকিল, সাতক্ষীরা সদর আওয়ামীলীগ ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শেখ আঃ রশিদ, আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুস সামাদ বাচ্চু, প্রেসক্লাব সভাপতি জি,এম আল ফারুক, সাবেক সভাপতি জিএম মুজিবুর রহমান, সেক্রেটারী সমীর রায়, আশাশুনি উপজেলা ফুটবল উন্নয়ন সমিতির সভাপতি মাহবুবর রহমান সহ স্থানীয় ইউপি সদস্যবৃন্দ। খেলায় সাতক্ষীরা বিউটি খেলাঘর বনাব হাজীপুর ইয়াংস্টার ক্লাব মুখোমুখি হয়। খেলায় সাতক্ষীরা বিউটি খেলাঘর ১-০ গোলের ব্যবধানে জয়লাভ করে। খেলায় সেরা গোলরক্ষক ও ম্যান অব দ্যা টুর্ণামেন্ট নির্বাচিত হন বিজয়ী দলের গোল রক্ষক বিদ্যুৎ। সেরা খেলোয়াড় নির্বাচিত হয়েছেন একই দলের মোস্তফা। খেলাটি পরিচালনা করেন আবু ওয়াহিদ বাবলু, জাহাঙ্গীর কবির ও রাহুল। ধারাভাষ্যে ছিলেন আশরাফ হোসেন ও মইন আলি। খেলা শেষে প্রধান অতিথি আলহাজ্ব নজরুল ইসলাম ও অন্য অতিথিবর্গ বিজয়ী, রানার আপ দলের ক্যাপটেনের হাতে পুরস্কার তুলে দেন।

কুড়িগ্রামে ২০০ অসহায় পরিবারের মাঝে নগদ অর্থ বিতরণ

কুড়িগ্রামে ২০০ অসহায় পরিবারের মাঝে নগদ অর্থ বিতরণ

কৃষ্ণ সরকার পীযূষ, ভ্রাম্যমাণ প্রতিনিধিঃ রংপুর রেঞ্জের ডিআইজি দেবদাস ভট্টাচার্য বিপিএম, কুড়িগ্রামের অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার মাসুদুর রহমান এবং এসপি মোহাম্মদ মহিবুল ইসলাম খান বিপিএম, কুড়িগ্রামের উলিপুরে দু'শ অসহায় পরিবারের মাঝে নগদ বিতরণ করেছে।

সোমবার বিকেলে, পঞ্চদশ বিসিএসের উদ্যোগে জেলা পুলিশের সহায়তায়, উলিপুরের হাতিয়া ইউনিয়নের 200 অসহায় পরিবারে প্রতি এক হাজার টাকা হারে মোট দুই লাখ টাকা বিতরণ করা হয়েছে।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (উলিপুর সার্কেল) আল মাহমুদ হাসান, উলিপুর থানার ওসি মোয়াজ্জেম হোসেন, হাতিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান বিএম আবুল হোসেন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

যুবলীগের সম্মেলন সাধারণ সম্পাদক পদে লড়বেন রিফাত

যুবলীগের সম্মেলন সাধারণ সম্পাদক পদে লড়বেন রিফাত

মিরসরাই প্রতিনিধিঃআগামী ২৮ নভেম্বর মিরসরাই উপজেলা যুবলীগের সম্মলনকে ঘিরে প্রচার-প্রচারনায় ব্যস্ত সময় পার করছেন সম্ভাব্য সভাপতি সম্পাদক প্রার্থীরা। কে হচ্ছে উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক এ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে চলছে আলোচনা। এই আলোচনায় রয়েছেন সাবেক ছাত্রলীগ নেতা শেখ আব্দুল্লাহ আলম মামুন রিফাত।

জানা গেছে, ২০০৮ সাল থেকে ছাত্রলীগের রাজনীতিতে যুক্ত হয় শেখ আব্দুল্লাহ আল মামুন রিফাত। ২০০৯ সাল থেকে  ২০১২ সাল পর্যন্ত বারইয়ারহাট ডিগ্রী  কলেজ ছাত্রলীগের নেতৃত্ব দেন। পরবর্তী সময়ে পড়া-শোনার সুবাদে চট্টগ্রাম ইসলামিয়া কলেজ ছাত্রলীগের সাথে সম্প্রক্ত হয়ে ছাত্রলীগের সকল কার্যক্রম চালিয়ে যান ২০১৬ সাল পর্যন্ত এবং তার পাশাপাশি বারইয়ারহাট পৌরসভা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম খোকনের ছায়াতলে ছাত্র রাজনীতিতে নিজেকে সর্বদা সক্রিয় রেখে নেতৃত্ব দিয়ে গেছেন। বারইয়ারহাট পৌরসভা ছাত্রলীগের দীর্ঘ সময় নেতৃত্ব দেন এবং সুস্থ রাজনীতি করেন, মাদক,সন্ত্রাসী,চাঁদাবাজের বিরুদ্ধে সব সময় জোরালো ভুমিকা রেখেছেন রিফাত। রিফাত অনেক ছাত্রলীগ নেতাকর্মীর সৃষ্টি করেন। পড়াশোনা শেষ করে আওয়ামী যুবলীগে যোগদান করেন যুবলীগের সক্রিয় কর্মী হিসেবে পুরো উপজেলায় কাজ করে যাচ্ছেন। যুবলীগের সকল কার্যক্রমে নিজে ও কর্মীদের নিয়ে দলীয় কর্মসূচিতে অংশ নিয়েছেন। 

রাজনীতির মাঠে শ্রম এবং আর্দশে অটুট থাকলেও কখনোই মূল নেতৃত্বে আসার সুযোগ হয়নি উপজেলার প্রত্যন্ত অঞ্চল থেকে বেড়ে ওঠা সাবেক এই ছাত্রেনতার। তাই এবার উপজেলা যুবলীগের নেতৃত্ব নির্বাচনের সুযোগ কে কাজে লাগাতে চান তিনি। যুবলীগের সম্মেলনে সাধারণ সম্পাদক পদপ্রার্থী  হিসেবে আলোচনায় রয়েছে শেখ আব্দুল্লাহ আল মামুন রিফাতের নাম।

রিফাত বলেন, আমি আসন্ন উপজেলা যুবলীগের সম্মেলনে সাধারণ সম্পাদক পদে প্রার্থী হয়েছি।  আমার নেতা ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন এমপি এবং আগামী দিনের মিরসরাইয়ের কর্ণধার ও তরুণ প্রজন্মের আইকন আইটি বিশেষজ্ঞ মাহবুব রহমান রুহেলের রাজনীতিকে আরো সক্রিয় এবং শক্তিশালী করার লক্ষে আমি উপজেলা য্বুলীগের সম্মেলনে সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী হয়েছি।

রিফাত আরো বলেন, যুব সমাজের রাজনীতিকে গতিশীল এবং মাদকমুক্ত যুব সমাজ গড়তে তুলতে সর্বোচ্চ চেষ্টা করবো।রিফাত শুধু রাজনীতি নয়, পাশাপাশি সামাজিক, ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের দায়িত্বেও রয়েছেন। তিনি মধ্যম আজম নগর বাইতুল মামুর জামে মসজিদের সভাপতির দায়িত্বে রয়েছেন। এছাড়া করোনাকালে এলাকার কর্মহীন এবং দরিদ্র অনেক পরিবারকে ত্রান সহায়তা করেছেন।

ইন্দুরকানীতে মায়ের দোয়া ফার্নিচার মার্ট এর যাত্রা শুরু

ইন্দুরকানীতে মায়ের দোয়া ফার্নিচার মার্ট এর যাত্রা শুরু



মিঠুন কুমার রাজ, স্টাফ রিপোর্টারঃ

পিরোজপুরের ইন্দুরকানী বাজারে মায়ের দোয়া ফার্নিচার মার্ট এর শুভ যাত্রা শুরু হয়েছে। এখানে সু-দক্ষ  কারিগর দ্বারা কাঠের যাবতীয় আসবাবপত্র তৈরি করা হয়।প্রতিষ্ঠানটির প্রতিষ্ঠাতা মোঃ খায়রুল ইসলামের কাছে তার প্রতিষ্ঠান সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি বলেন এখানে যেকোনো ধরনের মেলামাইন বোর্ডের যাবতীয় ডেকোরেশন তৈরি করা হয় এবং এই প্রতিষ্ঠানে যারা কাজ করেন তারা খুবই যত্নসহকারে প্রতিটি কাজ করে। তিনি আরও বলেন আমার এ প্রতিষ্ঠান থেকে কেউ কোন কাজে অসন্তুষ্ট হয়ে ফিরে যায়নি। যদি কারও এ ধরনের আসবাবপত্রের প্রয়োজন হয় তাহলে যেন ০১৯৬৬-৮৬০৫৬৬/০১৭৯৪৫৭৪৮৩২ এই নাম্বারে যোগাযোগ করে। আমি অবশ্যই আপনাদের সেবায় সর্বদাই নিয়োজিত থাকতে চাই। মায়ের দোয়া ফার্নিচার মার্ট সম্পর্কে স্থানীয় বাজারের সাধারণ জনগণের কাছে জানতে চাইলে তারা বলেন আমরা বিগত দিনগুলোতে দেখেছি প্রতিষ্ঠানটির প্রতিষ্ঠাতা খুবই সৎ এবং ভালো মনের মানুষ।তার সাথে যারা লেনদেন করেছে তারা সন্তোষজনক ব্যবহার পেয়েছেন। আশাকরি তিনি এভাবেই সাফল্যের সাথে এগিয়ে নিয়ে যাবে মায়ের দোয়া ফার্নিচার মার্ট।

আশাশুনি সদরে কমিউনিটি সাপোর্ট গ্রুপের প্রশিক্ষণ

 আশাশুনি সদরে কমিউনিটি সাপোর্ট গ্রুপের প্রশিক্ষণ

আহসান উল্লাহ বাবলু সাতক্ষীরা জেলা প্রতিনিধিঃআশাশুনি সদরে কমিউনিটি সাপোর্ট গ্রুপের একদিনের প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার সকালে আশাশুনি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় হল রুমে এ প্রশিক্ষণের আয়োজন করা হয়। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আয়োজনে ধান্যহাটি, গাইয়াখালী, নাটানা কমিউনিটি ক্লিনিকের কমিউনিটি সাপোর্ট গ্রুপের ১৫৩ জন সদস্য এ প্রশিক্ষণে অংশ নেন। প্রশিক্ষণের শুভ উদ্বোধন করেন উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ সুদেষ্ণা সরকার। পৃথক ৩টি কক্ষে পৃথক পৃথক প্রশিক্ষণে বক্তব্য রাখেন আশাশুনি প্লেসক্লাব সভাপতি জিএম আল ফারুক, রিপোর্টাস ক্লাবের সেক্রেটারী আব্দুস সামাদ বাচ্চু, প্রেসক্লাবের সহ-সভাপতি আলী নেওয়াজ, সাংবাদিক এমএম সাহেব আলী, আহসান উল্লাহ বাবলু, হাবিবুল্লাহ বিলালী, জগদীশ সানা, ইউপি সদস্য সন্তোষ কুমার, মনিরুজ্জামান মনি, দিলিপ কুমার মন্ডল, এফডব্লিউএ নাজমা খানম লাভলী, স্বাস্থ্য পরিদর্শক মোক্তারুজ্জামান স্বপন, সিএইচসিপি বজলুর রহমান বাবু, অনামিকা, অলকা রানী রায় প্রমুখ। প্রশিক্ষণে সাংবাদিক, মুক্তিযোদ্ধা, ভূমিহীন, ধর্মীয় নেতা, শিক্ষক, কিশোর, কিশোরী, গ্রাম পুলিশ, জনপ্রতিনিধি সহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষের অংশগ্রহণ করেন।

আশাশুনির মিত্র তেঁতুলিয়া হাইস্কুলের সুনাম ক্ষুন্ন করার পায়তারা, জরুরী সভা

আশাশুনির মিত্র তেঁতুলিয়া হাইস্কুলের সুনাম ক্ষুন্ন করার পায়তারা,  জরুরী সভা

আহসান উল্লাহ বাবলু, আশাশুনি সাতক্ষীরা  প্রতিনিধিঃ আশাশুনির মিত্র তেঁতুলিয়া পিএসএস মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে এক জরুরী সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার সকালে স্কুল হলরুমে প্রধান শিক্ষক এস.এম আবু ছাদেকের সভাপতিত্বে উক্ত সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় স্কুলের ছাত্রছাত্রীদের লেখাপড়ার গুণগত মান, শিক্ষা মন্ত্রনালয়ের নির্দেশনার আলোকে অনলাইন ক্লাস গ্রহণ, এ্যাসাইনমেন্ট প্রদান, বিদ্যালয়ের সার্বিক পরিবেশ সহ পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আলোচনা করা হয়। সভায় গত ০৯ নভেম্বর কয়েকটি পত্রিকায় আশাশুনির বিভিন্ন মাধ্যমিক বিদালয়ে পরীক্ষার নামে টাকা আদায় সংক্রান্ত যে সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে তার একটি অংশে অত্র বিদ্যালয়ের নাম যুক্ত করা হয়েছে অথচ উল্লেখিত বিষয়টির সাথে অত্র স্কুলের কোন সামঞ্জস্যতা নেই মর্মে আলোচনা করা হয়।

এ ব্যাপারে প্রধান শিক্ষক এস এম আবু ছাদেক বলেন, ১৯৬৬ সালে মিত্র তেঁতুলিয়া পিএসএস স্কুলটি প্রতিষ্ঠিত হয়। এখানে প্রায় ৪ শতাধিক ছাত্র-ছাত্রী লেখাপড়া করে। আমি ২০১২ সালে প্রধান শিক্ষক হিসেবে অত্র প্রতিষ্ঠানে যোগদান করি। ২০১৪ সালে এটি সেকায়েপ থেকে শ্রেষ্ঠ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পুরস্কার প্রাপ্ত হয়। ২০২০ সালের এসএসি পরীক্ষায় এখান থেকে ১২ জন শিক্ষার্থী এ প্লাস পায়। বর্তমানে এখানে সরকারি নির্দেশনা মেনে শিক্ষার্থীদের এ্যাসাইনমেন্ট প্রদান ও গ্রহন করা হচ্ছে।

তিনি বলেন, স্কুলের সার্বিক বিষয় যখন সাফল্যের পথে তখন গ্রাম্য রাজনীতির কারনে একটি মহল স্কুলের সুনাম ক্ষুন্ন করার পায়তারা চালাচ্ছে। এখানে এ্যাসাইনমেন্টর জন্য কোন টাকা গ্রহণ করা হয়নি। এ ব্যাপ্যারে পত্রিকায় আমার বক্তব্যটি যথাযথভাবে উপস্থাপিত হয়নি।

এ ব্যাপারে পিটিএ সভাপতি শঙ্কর প্রসাদ ব্যানার্জি, স্কুলের ৬ষ্ঠ শ্রেনীর শিক্ষার্থী ইলিমা, সুরাইয়া, ফারহানা, মারিয়া, রাকিবুল, রুমি, সায়েরা, ৭ম শ্রেনীর শিক্ষার্থী সুমাইয়া, হাছিনা, মারুফা, উম্মে রুম্মান, শিলা খাতুন সহ আরো অনেকে জানায়, আমাদের স্কুলে এ্যাসাইনমেন্ট বাবদ আমরা কোন টাকা দেইনি/শিক্ষকরা কোন টাকা গ্রহণ করেনি। টাকা লেনদেনের প্রচার স্কুলের সুনাম নষ্ট করার পায়তারা।

সভায় উপস্থিত ছিলেন ও বক্তব্য রাখেন পিটিএ সভাপতি শঙ্কর প্রসাদ ব্যানার্জি, স্কুলের সহকারি প্রধান শিক্ষক ভৈরব চন্দ্র রায়, সহকারি শিক্ষক হিরন্ময় মন্ডল, নুরুল ইসলাম, অনিতা রানী মন্ডল, ধীরাজ মোহন বাইন, সাইফুল ইসলাম, হাফিজুল ইসলাম প্রমুখ।

সংগঠনের ভাবমুর্তি ক্ষুন্ন না করার জন্য প্রেসবিজ্ঞপ্তি

 সংগঠনের ভাবমুর্তি ক্ষুন্ন না করার জন্য প্রেসবিজ্ঞপ্তি

আহসান হলো বাবলু আশাশুনি সাতক্ষীরা  প্রতিনিধিঃআশাশুনিতে সংগঠনের ভাবমুর্তি ক্ষুন্ন না করার জন্য উপজেলা আওয়ামীলীগের প্রেসবিজ্ঞপ্তি দেওয়া হয়েছে। সোমবার আশাশুনি উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি এ বি এম মোস্তাকিমের নির্দেশক্রমে আশাশুনি উপজেলা আওয়ামীলীগের দপ্তর সম্পাদক জগদীশ চন্দ্র সানা স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে যে, আশাশুনি উপজেলা আওয়ামীলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন গত ইং-৩০/১১/২০১৯ তারিখে অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে ১ম অধিবেশন শেষে ২য় অধিবেশনে সম্মেলনের সভাপতি জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মুনছুর আহম্মেদ আশাশুনি উপজেলা আওয়ামীলীগ সহ ১১টি ইউনিয়নের কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করেন। এরপর সম্মেলনে উপজেলা কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত করে আংশিক কমিটি ঘোষণা করেন। বর্তমানে আশাশুনি উপজেলার ১১টি ইউনিয়নে কোন কমিটি নাই। কিন্তু দেখা যাচ্ছে যে, কতিপয় স্বার্থান্বেষী ব্যক্তি ইউনিয়নের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের পদের পরিচয় দিয়ে অর্থের বিনিময়ে বিভিন্ন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতির সুপারিশ, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নিয়োগ বানিজ্য সহ অনৈতিক কাজের সাথে লিপ্ত হয়ে দলের ভাবমুর্তি ক্ষুন্ন করছে। সংগঠনের শৃংখলা ও ভাবমুর্তি রক্ষার জন্য দলীয় সকল পর্যায়ের নেতা-কর্মী সমর্থকদের এই ধরনের সংগঠন বিরোধী অবৈধ ও অনৈতিক কার্যকলাপ থেকে বিরত থাকার জন্য সকলকে তিনি অনুরোধ জানান। এরপরও যারা সংগঠন বিরোধী এধরনের কার্যক্রমের সাথে জড়িত থাকবে তাদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। সংগঠনকে গতিশীল করার লক্ষ্যে কেন্দ্রীয় সিদ্ধান্ত অনুযায়ী অতি দ্রুত ইউনিয়ন কমিটি গঠন করা হবে বলে প্রেসবিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়েছে। 

মহানবী (সাঃ)কে অবমাননার প্রতিবাদে নাগরপুরে মানববন্ধন

মহানবী (সাঃ)কে অবমাননার  প্রতিবাদে নাগরপুরে  মানববন্ধন

ডা.এম.এ.মান্নান,টাংগাইল জেলা প্রতিনিধি: ফ্রান্সে রাষ্ট্রীয় পৃষ্টপোষকতায় হযরত মুহাম্মদ (সাঃ) এর ব্যাঙ্গচিত্র প্রদর্শনকারী বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানিয়ে সারাদেশের ন্যায় টাংগাইলের নাগরপুরেও একতা সাংস্কৃতিক উন্নয়ন সংস্থার উদ্যোগে  মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।আজ সোমবার,৯ নভেম্বর ২০২০ খ্রি. সকালে  নাগরপুরের প্রাণ কেন্দ্র নাগরপুর বাজার রিক্সা স্ট্যান্ডে প্রতিবাদী মানববন্ধন কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়। 

নাগরপুরের সর্বস্বরের তৌহিদী নবী প্রেমীকদের অংশগ্রহণে এই মানববন্ধন কর্মসৃচী অনুষ্ঠিত হয়। বক্তারা ফ্রান্সে মহানবী হযরত মুহাম্মদ (স.) এর ব্যাঙ্গচিত্র প্রদর্শনের প্রতিবাদ জানিয়ে ফ্রান্সের সকল পন্য বর্জনের জন্য সকলের প্রতি আহ্বান জানান এবং ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট কে প্রকাশ্য মাফ চাওয়ার আহবান জানান।

 মহানবী (সা.) এর অবমাননার প্রতিবাদে মানববন্ধনে  উপস্হিত ছিলেন, মুফতী মাও.মো.শহিদুল ইসলাম,একতা সাংস্কৃতিক উন্নয়ন সংস্হার উপদেষ্টা মো.নুরুল ইসলাম,শাহীন, সাধারন সম্পাদক মো.তোফাজ্জল হোসেন তুহিন,মুকতাদির হোমিও চিকিৎসা কেন্দ্রের মেডিকেল অফিসার ডা.কাউছার খান,মুফতী মাও.আ.হাদী,ইকবাল মাষ্টার সহ নাগরপুরের সর্বস্বরের আলেম সমাজ,ব্যাবসায়ীগন,সুশীল সমাজ,সাংবাদিক বৃন্দ গন উপস্হিত ছিলেন।

সমন্বিত ভর্তি পরিক্ষায় অংশগ্রহণ করছে না ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়।

 সমন্বিত ভর্তি পরিক্ষায় অংশগ্রহণ করছে না ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়।

মোঃ শামীম আল-মামুন,ইবি প্রতিনিধিঃ সারাদেশব্যপী সমন্বিত সমন্বিত ভর্তি পরিক্ষা নেয়ার ঘোষণা দিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউ জি সি)। এই সিদ্ধান্তকে আমলে নিয়ে সবার সাথে একমত হয়ে সমন্বিত ভর্তি পরিক্ষা নিতে চেয়েছিল ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়। সমসাময়িক পরিস্থিতি বিবেচনা করে ঢাকা, জাহাঙ্গীরনগর, চট্রগ্রাম, ও রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় সহ বেশ কয়েকটা বিশ্ববিদ্যালয় এই সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসে। তাদের পাশাপাশি এবার সেই সিদ্ধান্তকে যাচাই বাচাই করে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ভর্তি পরিক্ষা কমিটি ও সমন্বিত ভর্তি পরিক্ষা থেকে  সরে আসার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। আজ ৯ ই নভেম্বর কেন্দ্রীয় ভর্তি পরিক্ষা কমিটি ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় এই নির্দেশনা প্রধান করে। এছাড়াও ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রোক্টর প্রফেসর ড. পরেশ চন্দ্র বর্মণ এই তথ্য নিশ্চিত করে বলেন কেন্দ্রীয়  ভর্তি পরিক্ষা কমিটির এই সিদ্ধান্তক্রমেই সমন্বিত ভর্তি পরিক্ষা থেকে সরে আসা চূড়ান্ত হয়েছে।

খুলনায় মাস্ক না পরায় মোবাইল কোর্টের জরিমানা

 খুলনায় মাস্ক না পরায় মোবাইল কোর্টের জরিমানা

তুহিন রানা (আব্রাহাম) ; খুলনা নগর প্রতিনিধিঃআজ একইদিনে ২৫ মামলায় ১৭১০০ টাকা অর্থদণ্ড ও ৩৩ জন আটক।কোভিড-১৯ সংক্রমণের সম্ভাব্য সেকেন্ড ওয়েভ মোকাবেলায় মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের চিঠির প্রেক্ষিতে গত ৮ নভেম্বর, ২০২০ তারিখে অনুষ্ঠিত জেলা আইন-শৃঙ্খলা কমিটির সভায় সর্বসম্মতিক্রমে সিদ্ধান্ত হয় যে, (যথাযথ ভাবে) মাস্ক পরিধান ব্যতীত কেউ রাস্তা-ঘাট, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও অফিস-আদালতে অবস্থান করলে তাকে মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে আইনের আওতায় আনা হবে এবং বিধি মোতাবেক জেল-জরিমানা প্রদান করা হবে। জেলা আইন-শৃঙ্খলা কমিটির সভার সর্বসম্মত সিদ্ধান্তের প্রেক্ষিতে আজ সুযোগ্য জেলা প্রশাসক ও বিজ্ঞ জেলা ম্যাজিস্ট্রেট, খুলনা জনাব মোহাম্মদ হেলাল হোসেন পিএএ মহোদয়ের নির্দেশনায় এবং বিজ্ঞ অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট, খুলনা মোঃ ইউসুপ আলী মহোদয়ের তত্ত্বাবধানে নগরীর বিভিন্ন স্থানে মোবাইল কোর্ট পরিচালিত হয়। মাস্ক পরিধানের বিধান লঙ্ঘনকারীদের বিরুদ্ধে জেলা প্রশাসন কঠোর অবস্থান গ্রহণ করে। 

স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিতকরণে বিজ্ঞ অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট, খুলনা মোঃ ইউসুপ আলী মহোদয় সরেজমিনে স্পটে উপস্থিত থেকে বিধি মোতাবেক ব্যবস্থা গ্রহোণের বিষয় তদারকি করেন। মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করেন জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জনাব দীপা রানী সরকার, জনাব সেটু কুমার বড়ুয়া, জনাব মোঃ রাকিবুল হাসান এবং জনাব মোঃ তাহমিদুল ইসলাম। এসময় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটগণ মাস্ক না পরার অপরাধে মোট ২৫টি মামলায় ১৭,১০০/- (সতেরো হাজার একশত) টাকা জরিমানা করেন। এসময় ৩৩ জনকে আটক করা হয়। মোবাইল কোর্ট পরিচালনায় সহযোগিতা করেন কেএমপি’র সদস্যগণ, র‍্যাব-৬ এর সদস্যগণ এবং আনসারের সদস্যগণ। 

কোভিড-১৯ সংক্রমণের সম্ভাব্য সেকেন্ড ওয়েভ মোকাবেলায় জেলা প্রশাসনের এমন কঠোর অবস্থান অব্যাহত থাকবে এবং নিয়মিতভাবে মোবাইল কোর্ট পরিচালিত হবে।

মোংলায় উপকূল এলাকায় স্থায়ীত্বশীল উন্নয়ন বিষয়ক কর্মশালা অনুষ্ঠিত

মোংলায় উপকূল এলাকায় স্থায়ীত্বশীল উন্নয়ন বিষয়ক কর্মশালা অনুষ্ঠিত

মোঃ এরশাদ হোসেন রনি, মোংলাঃ  দেশের নদ-নদী ও জলাশয় রক্ষা করে উন্নয়ন কর্মকান্ড চলমান রাখতে হবে। সরকার যাতে আন্তর্জাতিকভাবে প্রতিশ্রুত টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করতে পারে সে ব্যাপারে পরিবেশ সুরক্ষায় সবাইকে নজর দিতে হবে। ব-দ্বীপ পরিকল্পনার অংশ হিসেবে ব্যাপক উন্নয়ন কর্মকান্ড সঠিকভাবে পরিচালনায় সুন্দরবনসহ নদ-নদী-জলাশয় ও প্রাণ-প্রকৃতি সুরক্ষায় সরকারকে উদ্যোগী হতে হবে। সোমবার সকালে মোংলার ইপিজেডথর ক্যাপেতে বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন (বাপা), পশুর রিভার ওয়াটারকিপার এবং ওয়াটারকিপার্স বাংলাদেশ আয়োজিত দুইদিনব্যাপী ‘উপকূল এলাকায় স্থায়ীত্বশীল উন্নয়ন বিষয়ক কর্মশালাথর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তারা এসব কথা বলেন।

সোমবার সকাল ১০টায় অনুষ্ঠিত কর্মশালার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলনথর (বাপা) সাধারণ সম্পাদক ওয়াটারকিপার্স বাংলাদেশথর সমন্বয়কারী শরীফ জামিল। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন বাগেরহাটের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) মোঃ হাফিজ-আল-আসাদ। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন ভারপ্রাপ্ত উপজেলা নির্বাহী অফিসার নয়ন কুমার রাজবংশী, গণতান্ত্রিক বাজেট আন্দোলনথর সাধারণ সম্পাদক গবেষক মনোয়ার মোস্তফা ও বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা ‘ক্লিনথর নির্বাহী পরিচালক হাসান মেহেদী। 

কর্মশালায় টেকসই উন্নয়নের জন্য কমিউনিটির ভূমিকা বিষয়ক প্রেজেন্টেশন উপস্থাপন করেন ওয়াটারকিপার্স বাংলাদেশথর ম্যানেজার ( গবেষণা ও বাস্তবায়ন ) এসএম ,আরাফাত জুবায়ের। কর্মশালা সঞ্চলনায় ছিলেন পশুর রিভার ওয়াটারকিপার বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলনথর ( বাপা ) বাগেরহাট জেলা কমিটির আহ্বায়ক মোঃ নূর আলম শেখ। 

সিরাজগঞ্জ ১ কাজিপুরে উপনির্বাচনে ভোটারের দারে দারে ঘুরছেন নেতা কর্মিরা

সিরাজগঞ্জ ১ কাজিপুরে উপনির্বাচনে ভোটারের দারে দারে ঘুরছেন নেতা কর্মিরা

 

মাসুদ রানা সিরাজগঞ্জ জেলা প্রতিনিধিঃসিরাজগঞ্জ ১ কাজিপুর উপনির্বাচনে সাধারণ ভোটারের কাছে ভোট চান নেতা কর্মিরা এ সময় উপস্থিত  ছিলেন রতন কান্দি ইউনিয়ন আঃমী স্বেচ্ছাসেবক লীগের ভার প্রাপ্ত সভাপতি সোহেল রানা,সাধারণ সম্পাদক সাজেদুল ইসলাম আবির, সাংগঠনিক সম্পাদক হেলাল উদ্দিন,সাবেক ইউনিয়ন আঃমী যুব লীগের সাধারণ সম্পাদক আলী আসলাম,সদর থানা আঃমী সেচ্ছাসেকক লীগের সহ সভাপতি মাহমুদুল হাসান মিল্টন,ইঃ আঃমী যুবলীগের সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম,সাধারণ সম্পাদক বুলবুল আহম্মেদ ভুট্রো, ইঃআঃমীলীগের অন্যতম সদস্য বাবুল আক্তার,  সাবেক ইউঃছাএলীগের সহ সভাপতি লুৎফর রহমান,ইউঃ ছাএলীগের সভাপতি আঃ আলিম খাঁন,সাধারণ সম্পাদক জাকিরুল ইসলাম বাবু, সহ  অংগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। এ সময় নেতা কর্মিরা হাটে বাজারে ঘুরে ঘুরে ভোটারদের কাছে গিয়া বিভিন্ন উন্যায়ন মুলক কাজের কথা উল্লেক করে তানভীর শাকিল জয়ের নৌকা মার্কায় ভোট চান।

নওগাঁর আত্রাই উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে বিলবোর্ড

নওগাঁর আত্রাই উপজেলা প্রশাসনের  উদ্যোগে বিলবোর্ড

রাজশাহী ব্যুরোঃ নওগাঁর আত্রাই উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে মাস্ক পরিধান বিষয়ক বিলবোর্ড স্থাপন করা হয়েছে। সোমবার সকালে উপজেলায় প্রবেশের প্রধান ফটোকের সামনে মাস্ক পরিধান ব্যতীত প্রবেশ নিষেধ, পরিষদ প্রাঙ্গনে মাস্ক পরিধান না করলে সেবা বন্ধ এবং উপজেলা পরিষদের ফটকে মাস্ক পরিধান করুন সেবা নিন অনুরোধক্রমে উপজেলা প্রশাসন আত্রাই। এভাবেই উপজেলা বাসীকে দ্বিতীয় ধাপে শুরু হওয়া করোনার হাত থেকে রক্ষার্থে বিলবোর্ডগুলো স্থাপন করা হয়।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. ছানাউল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন,মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা অনুযায়ী সকলকে মাস্ক পরিধান করে নিজেকে, পরিবারের সদস্যদের এবং দেশবাসীকে বৈশিক করোনার হাত থেকে রক্ষার্থে এ বিলবোর্ড স্থাপন করা হলো। এর পরেও মাস্ক পরিধান ব্যতীত কাউকে বাজারে ঘোরা-ঘুরি করতে দেখলে তার বিরুদ্ধে ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বগুড়ার নারীদের তৈরি হস্তপণ্য রপ্তানি হচ্ছে বিশ্বের ৫০টি দেশে

বগুড়ার নারীদের তৈরি হস্তপণ্য রপ্তানি হচ্ছে বিশ্বের ৫০টি দেশে


মোঃ সবুজ মিয়া বগুড়া প্রতিনিধিঃ 
১৯৮৫
সাল। ঢাকার একজন ব্যবসায়ী কাজের কথা বলে নারীদের হাতে তুলে দিয়েছিলেন কাশফুলের খড় ও শণ। তাই দিয়ে নারীরা শুরু করলেন ডালা-ঝুড়ির মতো শৌখিন হস্তশিল্প তৈরি। আস্তে আস্তে তিন গ্রামজুড়ে শুরু হয়ে গেল এই কর্মযজ্ঞ। নারীদের তৈরি করা পণ্য বিদেশে রপ্তানি শুরু করলেন ওই ব্যবসায়ী। তাঁর পথ ধরে একে একে এল আরও ১০-১২টি হস্তশিল্প রপ্তানিকারক প্রতিষ্ঠান। এ কাজ করে নিজেরা তো দারিদ্র্য জয় করলেনই, গ্রামীণ হাজারো নারীকে সচ্ছল-স্বাবলম্বী হওয়ার পথ দেখালেন বগুড়ার শেরপুর উপজেলার শেরুয়া ও ধড়মোকাম গ্রামের নারীরা।

জেলা শহর বগুড়া থেকে প্রায় ২২ কিলোমিটার দূরের গ্রাম শেরুয়া ও ধড়মোকাম থেকে শৌখিন হস্তশিল্প তৈরির কর্মযজ্ঞ এখন ছড়িয়ে পড়েছে উপজেলার শাহ বন্দেগী, কুসুম্বি, গাড়িদহ, মহিপুর, খানপুর ইউনিয়নের আরও ১৮-২০টি গ্রামে। ১০–১২ হাজার নারী জড়িয়ে আছেন হস্তশিল্প তৈরির এই কর্মযজ্ঞে। খড়, শণ, তালপাতা, হোগলাপাতার রকমারি নানা হস্তপণ্য তৈরির কাজ করে দারিদ্র্য ঘুচিয়েছেন অনেক নারী। এসব পণ্য রপ্তানি হচ্ছে ইউরোপ, আমেরিকা, মধ্যপ্রাচ্য ও আফ্রিকায়।

সকাল-সন্ধ্যা কর্মমুখর
হেমন্তের এক সকালে সরেজমিনে দেখা গেল, ঘরে ঘরে নারীদের হস্তশিল্প তৈরির কর্মযজ্ঞে সরগরম হয়ে উঠেছে গাড়িদহ ইউনিয়নের বনমরিচা গ্রাম। বাড়ির উঠানে, গাছের ছায়ায় বসে নারীরা হরেক রকমের হস্তজাত পণ্য তৈরি করছেন। কেউ তৈরি করছেন ডালা, কেউ ঝুড়ি, কেউ আবার নানা হস্তজাত পণ্য। গ্রামের এক গাছতলায় বসে ডালা তৈরি করছিলেন পাঁচজন নারী। তাঁদের একজন হলদিপাড়ার কদভানু বেগম বলেন, সারা বছর ঘরে ঘরে হস্তপণ্য তৈরির এ কাজ হয়। যমুনার বালুচরের কাশবন থেকে কাশফুলের গাছ ও শণ সংগ্রহ করেন গ্রামের পুরুষেরা। নারীরা তা দিয়ে পণ্য তৈরি করেন।

হাতের কাছেই কাঁচামাল
কারিগরেরা জানান, হস্তজাত ঝুড়ি তৈরির কাঁচামাল তালপাতার উপকরণ আসে পাশের কাহালু উপজেলা থেকে। অন্যদিকে কাশফুলের গাছ, উলু ও শণ আসে বগুড়ার সারিয়াকান্দি ও সিরাজগঞ্জের কাজীপুর উপজেলার যমুনা নদীর দুর্গম চরাঞ্চল থেকে। আর স্থানীয়ভাবে হোগলাপাতার জোগান আসে। কাশফুলের গাছ প্রতি কেজি পাঁচ টাকায় বিক্রি হয়।

বুলবুলি বেগম নামের এক কারিগর বলেন, তালগাছের পাতা হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে আঁশ বের করা হয়। এ আঁশ দেখতে ঠিক বেতের মতো। এ ছাড়া হোগলাপাতা ও কাশফুলের গাছ শুকিয়ে ঝুড়ি তৈরির কাঁচামাল প্রস্তুত করা হয়। পরে তালপাতার শুকনা আঁশ, হোগলাপাতা আর কাশফুলের গাছ বা উলু প্লাস্টিকের দড়ি দিয়ে হাতে বুনে ঝুড়ি তৈরি করা হয়।

সম্প্রতি উপজেলার গোসাইবাড়ি গ্রামে সাদিয়া হ্যান্ডিক্রাফট নামে একটি প্রতিষ্ঠানে গিয়ে দেখা গেল, ১৫-১৬ জন নারী হস্তজাত পণ্য তৈরির কাজ করছেন। কেউ কুকুর ও বিড়াল রাখার বাস্কেট, কেউ ডালা, কেউ পাতিল, কেউ লন্ড্রি বাস্কেট তৈরি করছেন।

আছে মধ্যস্বত্বভোগীও
নারীদের কাছ থেকে পণ্য সংগ্রহের জন্য প্রতিটি গ্রামে রপ্তানিকারক প্রতিষ্ঠানগুলোর এজেন্ট রয়েছে। ২০–১০০ জন নিয়ে গঠিত সমিতির নারী সদস্যরা তাঁদের পণ্য দেন এজেন্টের কাছে। এজেন্টরা রপ্তানিকারক ১০-১২টি প্রতিষ্ঠানের কাছে সরবরাহ করেন।

কারিগরদের অভিযোগ, তাঁরা কষ্ট করে পণ্য তৈরি করলেও মোটা অঙ্কের লাভ চুষে নেন স্থানীয় এজেন্টরা। একজন কারিগর বলেন, তালপাতার একটি ঝুড়ি ও লন্ড্রি ঝুড়ি তাঁদের কাছ থেকে ৪৫০ টাকায় কিনে এজেন্টরা ৬৫০ টাকায় রপ্তানিকারকদের কাছে বিক্রি করেন। বিড়াল-কুকুরের ঝুড়ি ১২০-১৪০ টাকায় সংগ্রহ করে ২৩০-২৫০ টাকায় সরবরাহ করেন। বড় আকারের ঝুড়িতে কারিগরেরা পান ৩৫০ টাকা। অথচ রপ্তানিকারকদের কাছে ৪৫০–৫০০ টাকায় বিক্রি করা হয়।

বগুড়ার নারীদের তৈরি হস্তপণ্য বিদেশের বাজার দখল করেছে। এর মাধ্যমে বিশ্ববাণিজ্যে বগুড়া আরও এক ধাপ এগিয়ে গেল। নারীরা নিজেরা উদ্যোক্তা হতে চাইলে চেম্বার সহযোগিতা দেবে।

বছরে ২৫ কোটি টাকার বাণিজ্য
হস্তশিল্পপণ্যের কারিগর, এজেন্ট ও রপ্তানিকারকদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, শেরপুর উপজেলার নারীদের তৈরি হস্তশিল্পপণ্য সংগ্রহ করে ১০-১২টি রপ্তানিকারক প্রতিষ্ঠান বিশ্বের বিভিন্ন দেশে তা রপ্তানি করছে। এর মধ্যে রয়েছে ক্ল্যাসিক্যাল হ্যান্ড মেইড প্রোডাক্টস লিমিটেড বিডি, ডগিম্যান বাংলাদেশ লিমিটেড, সান ট্রেড লিমিটেড, ঢাকা হ্যান্ডিক্রাফটস বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান। এসব প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, সব মিলিয়ে বগুড়ার শেরপুরের নারীদের তৈরি প্রায় ২৫ কোটি টাকার পণ্য বিশ্বের প্রায় ৫০টি দেশে রপ্তানি করা হয়।

বগুড়া চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি মাসুদুর রহমান বলেন, বগুড়ার নারীদের তৈরি হস্তপণ্য বিদেশের বাজার দখল করেছে। এর মাধ্যমে বিশ্ববাণিজ্যে বগুড়া আরও এক ধাপ এগিয়ে গেল। নারীরা নিজেরা উদ্যোক্তা হতে চাইলে চেম্বার সহযোগিতা দেবে।

কাজিপুর ১ আসনে উপনির্বাচনে ইভি এম এর মাধ্যমে ভোট গ্রহণ প্রশিক্ষণ চলছে

 কাজিপুর ১ আসনে উপনির্বাচনে ইভি এম এর মাধ্যমে ভোট গ্রহণ  প্রশিক্ষণ চলছে

মাসুদ রানা সিরাজগঞ্জ জেলা প্রতিনিধিঃ সিরাজগঞ্জ কাজিপুর ১ আসনে উপোনির্বাচনে ইভি এম এর মাধ্যমে ভোট গ্রহণ  প্রশিক্ষণ চলছে সোমবার সকাল ১০ টা থেকে সিরাজগঞ্জ সদর রতন কান্দি সহ কাজিপুর ও সদর ৫ ইউনিয়নে ইভি এমর মাধ্যমে ভোট দেয়া প্রশিক্ষণ শুরু হচ্ছে।এ ভাবে সোম ও মঙ্গলবার পযন্ত চলবে বলে জানান প্রতিটি ভোট কেন্দ্রের পোলিং অফিস্যার, তারা বলেন সাধারণ ভোটার যেন ভোটের দিন এসে সঠিক ভাবে ভোট দিতে পারে।  মাননীয় প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশ।

খুলনায় মাস্ক না পরায় আটক অর্ধশত, ৮ জনকে জরিমানা

 খুলনায় মাস্ক না পরায় আটক অর্ধশত, ৮ জনকে জরিমানা

তুহিন রানা (আব্রাহাম) ; খুলনা নগর প্রতিনিধিঃ

খুলনা জেলা প্রশাসন করোনা ভাইরাসের দ্বিতীয় পর্যায়ের সংক্রমণ ঠেকাতে কঠোর অবস্থান নিয়েছে। মাস্ক না পরে বাইরে বের হওয়া ব্যক্তিদের আটক ও জরিমানা করা হচ্ছে।


সোমবার (৯ নভেম্বর) সকাল ১০টা থেকে খুলনা মহানগরের দু’টি স্থানে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হচ্ছে। প্রথম এক ঘণ্টাতেই অর্ধশতাধিক ব্যক্তিকে আটক করা হয়েছে। এছাড়া আট ব্যক্তিকে সাড়ে ছয় হাজার টাকা জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।


খুলনা জেলা প্রশাসনের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মো. ইউসুপ আলী বলেন, করোনা ভাইরাসের দ্বিতীয় পর্যায়ের সংক্রমণ প্রতিহত করতে কঠোর অবস্থান নেওয়া হয়েছে।


জেলা আইনশৃঙ্খলা কমিটির বৈঠক অনুযায়ী মাস্ক না পরে ঘর থেকে বের হওয়া ব্যক্তিদের জেল দেওয়া হবে। এর আগে প্রথম পর্যায়ে সংক্রমণ ঠেকাতে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনার মাধ্যমে অনেক ব্যক্তিকে জরিমানা করা হয়েছিল, কিন্তু তাতে মানুষের মধ্যে সচেতনতা আসেনি।


এ কারণেই এমন কঠিন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। মাস্ক না পরে বাইরে আসা ব্যক্তিদের প্রাথমিকভাবে আটক করা হচ্ছে। পরবর্তীতে তাদের বিরুদ্ধে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।


খুলনা জেলা প্রশাসক ও জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ হেলাল হোসেনের সভাপতিত্বে অনলাইন জুম প্রযুক্তিতে গত রোববার (৮ নভেম্বর) জেলা আইনশৃঙ্খলা কমিটির নভেম্বর মাসের সভায় বাধ্যতামূলক মাস্ক পরিধান নিশ্চিতে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে নিয়মিত ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

গাছা লাগান পরিবেশ বাঁচান

গাছা লাগান পরিবেশ বাঁচান

খোন্দকার আব্দুল্লাহ বাশার, খুলনা ব্যুরো প্রধানঃ

গাছ লাগান, প্ররিবেশ বাঁচান, এই প্রতিপাদ্য কে সামনে রেখে কোটচাঁদপুরে সামাজিক সংগঠন প্রজন্ম উদ্যোগে পৌর বাস টার্মিনালে সোমবার সকালে সংগঠনটির পক্ষ থেকে বিভিন্ন প্রাজতির ২০০ টি বৃক্ষ আম, জাম, কাঁঠাল, পিয়ারা, জলপাই, ইত্যাদি বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে রোপণ ও বিতরণের মাধ্যমে এ কর্মসূচি পালন করেন। কর্মসূচিতে অংশ গ্রহণ করেন সংগঠনের সভাপতি মোঃ আল- ইয়াছিন চৌধুরী (আবির) সাধারণ সম্পাদক মোঃ শিবলী সাদিক ( পিয়াস), সাংগঠনিক সম্পাদক, এহসানুল  ফেরদৌস ( রামিম) সহ পাভেল, নিশান, সাগর, প্রসেনজিৎ, নিয়ম, শান্ত, সজিব সহ আরো অনেকে উপস্থিত ছিলেন।

লোহাগড়া নির্বাচন অফিসে কার্ড বাবদ টাকা চাওয়ার অভিযোগ

 লোহাগড়া নির্বাচন অফিসে  কার্ড বাবদ টাকা চাওয়ার অভিযোগ


মো:আজিজুর বিশ্বাস স্টাফ রিপোর্টার নড়াইলঃনড়াইলের লোহাগড়া উপজেলা নির্বাচন অফিস সহায়ক মো: সিরাজ এর নামে ভোটার কার্ড  করে দেওয়ার কথা বলে দুই হাজার টাকা চেয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। 

ভুক্তভোগী রুপা বলেন অামি অামার ভাই কে নিয়ে ৮/১১/২০২০ তারিখ : রবিবার সকাল ১০ টার দিকে লোহাগাড়া নির্বাচন অফিসে যাই, ভাইয়ের জন্য নতুন ভোটার আইডেন্টি কার্ড করব বলে, সেখানে গিয়ে অফিসের লোকদের সাথে কথা  তারা অামাদের অনলাইনে আবেদন করতে বলেন, তখন আমি তাদের কাছে জিজ্ঞাসা করি এ কার্ড পেতে কতদিন সময় লাগবে, তখন অফিসের সিরাজ নামে একজন ব্যক্তি, বলে অনেক দিন সময় লাগবে, ও তখন সে আমাকে ইশারা দিয়ে নিচে যাইতে বলে, আমি দুই তলা থেকে নিচে নেমে অাসলে সে আমাকে অফিসের বারান্দার পাশে ডাকে, ও বলে তোমার কাছে থাকা মোবাইল,  পালস ব্যাগ তোমার ভাইয়ের কাছে দিয়ে এদিকে আসো, আমি সিরাজের কথামতো সেখানে গেলে সে আমাকে বলে ২ হাজার টাকা দিলে ১০ দিনে কার্ড করে দিবে। 

এ সময় অফিস সহায়ক সিরাজাের সাথে দরকষাকষি হয়, পরে সে অামাদের ফিরিয়ে দেয়।এরপর দিন ৯/১১/২০২০ তারিখ : সোমবার সকালে মো: মুন্না মোল্ল্যা (২২)  ও তার মা নির্বাচন অফিসে গিয়ে কথা বলতে চাই সিরাজের সাথে তখন সিরাজ সাহেব তাদের সাথে কথা না বলে এড়িয়ে যাই। এর পরে মুন্না মোল্লা সাংবাদিকদের কাছে বলেন আমরা টাকা দিতে পারি নাই, বলে অামার ভোটার আইডেন্টি কার্ড করাতে পারিনাই। আমরা গরিব মানুষ টাকা নাই বলে কি দেশের নাগরিত্ব কার্ড করতে পারবো না।

মো: সিরাজের সাথে এ বিষয়ে কথা বললে তিনি অস্বীকার করেন। ও বলেন অামি কোনো টাকা চাই নি, তাদেরকে অনলাইনে আবেদন করতে বলেছি। 

এই টাকা চাওয়ার বিষয়ে কথা হয় মো: জসিম উদ্দিন, উপজেলা নির্বাচন অফিসার লোহাগড়া নড়াইল এর সাথে তিনি বলেন সরকারি নিয়ম ছাড়া, ও অনলাইন আবেদন ছাড়া কেউ কোন সুযোগ নিতে পারবে না, নিয়ম যা আছে সবাই এইভাবে কার্ড পাবে। তিনি আরো বলেন টাকার বিষয়টা আমি শুনি নাই, অফিসের কারো টাকা নেয়ার কোনো নিয়ম নেই। 

যশোর মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ডের পরিছন্ন কর্মীকে বরখাস্ত নিয়ে নানা গুঞ্জন !

 যশোর মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ডের  পরিছন্ন কর্মীকে বরখাস্ত নিয়ে নানা গুঞ্জন !

স্টাফ রিপোর্টারঃ  যশোর শিক্ষাবোর্ডের পরিচ্ছন্নকর্মীকে সাময়িক বরখাস্তের ঘটনায় তোলপাড়! যশোর শিক্ষাবোর্ডের একজন পরিছন্ন কর্মীকে তুচ্ছ ঘটনায় সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। এ ঘটনায় শিক্ষাবোর্ডের কর্মকর্তা কর্মচারীদের মধ্যে নানান ক্ষোভ সৃষ্টি হয়েছে। সিবিএ নির্বাচনের আগে এ বরখাস্তের ঘটনায় কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন সিবিএ নেতারা। বরখাস্তকৃত পরিছন্নকর্মী শ্রীতন কুমার দাশ তত্তাবধান শাখার অধীনে 

প্রশানিক ভবন-১ এর নীচতলা, প্রশাসনিক ভবন ২ এর ৩য়, ৪ র্থ ও রেস্ট হাউজের পরিচ্ছন্নতা কাজে কর্মরত ছিলেন। এদিকে বোর্ডের চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে উদ্দেশ্যে প্রণোদিত 

কর্মকর্তা কর্মচারীদের বিরুদ্ধে অসাদাচারণ ও বরখাস্ত নামে হাতিয়ার ব্যবহার করছেন বলে অভিযোগ রয়েছে।

জানা গেছে, গত ৭ অক্টোবর সকাল সাড়ে ৯টার দিকে বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. মোল্যা আমির হোসেন বোর্ডের প্রশাসনিক ভবন ১ নিচ তলার গাড়ির গ্যারেজে আসেন এবং 

সেখানে বস্তা দিয়ে ঢেকে রাখা ময়লা আবর্জনা পরিস্কার করা হয়নি তা জানতে চান। এসময় তিনি গাড়ি গ্যারেজের মেঝেতে বিদ্যুতের তার বসানো কাজ করা হয়েছে। মিস্ত্রিরা বাকি কাজটা করেনি এবং এখানে আমার ডিউটি না বলে জানালে তিনি ক্ষিপ্ত হয়ে উঠেন। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে বোর্ডের সচিব এএম এইচ আলী আর রেজা ৩৭.১১.৪০৪১.২০৮,১৮,১২.২০.১৫২/৩০১৫, তারিখ : ১১.১০.২০২০ স্মারকে তাকে কারণ দর্শানো নোটিশ দেন। পরিছন্নকর্মীশ্রীতন কুমার দাশ গত ১৩ অক্টোবর কারণ দর্শানোর নোটিশের 

জবাব দেন। সেখানে ঘটনার তথ্য তুলে ধরেন। এছাড়া বোর্ডের ৬ জন পরিচ্ছন্ন কর্মচারীদের কাজের বন্টনে অনিয়ম করে তাকে অন্যান্যদের তুলনায় বেশি পরিমাণে কাজের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে বলে উল্লেখ করেন। একই সাথে ঘটনার জন্য দুঃখ প্রকাশ করে মার্জনা করার জন্য এবং ভবিষ্যতে এধরণের ত্রæটি হবে না বলে 

নোটিশের জবাবে পরিচ্ছন্ন কর্মী উল্লেখ করেন। এদিকে দায়িত্ব অবহেলা, বোর্ডের চেয়ারম্যানের সাথে সরকারি শৃংখলা পরিপন্থি কার্যক্রমের তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিলের জন্য তিন 

সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন করেন। গঠিত কমিটির আহবায়ক হলেন, বোর্ডের উপসচিব (প্রশাসন) আব্দুস সালাম আজাদ, 

সদস্য সচিব সহকারী সচিব ১ (প্রশাসন) মুজিবুল হক এবং সদস্য হলেন সহকারী বিদ্যালয় পরিদর্শক (অনুমোদন) এসএম 

আনিছুর রহমান।তদন্ত কমিটির প্রতিবেদন পাওয়ার পর এবং কারণ দর্শানোর 

জবাবের প্রেক্ষিতে গত ২৭ অক্টোবর বোর্ডের সচিব এএমএইচ আলী আর রেজা ঝাড়–দার শ্রীতন কুমার দাশকে সাময়িক বরখাস্ত 

করেন। একই সাথে তিন কর্মদিবসের মধ্যে কারণ দর্শানোর নির্দেশ দেয়া হয়েছে। যার স্মারক নম্বর 

৩৭.১১.৪০৪১.২০১.১৮.০১২.২০.১৭৩। তারিখ : ২৭.১০.২০২০। এ ঘটনায় বোর্ডের কর্মকর্তা কর্মচারীদের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি 

হয়েছে।বোর্ডের দায়িত্বশীল সূত্রে জানা গেছে, আগামি ১৬ নভেম্বর বোর্ডের সিবিএ নির্বাচন। নির্বাচনে যশোর শিক্ষাবোর্ড এমপ্লয়ীজ ইউনিয়ন ও যশোর শিক্ষাবোর্ড 

কর্মচারী ইউনিয়ন অংশ নিচ্ছে। সেখানে এমপ্লয়ীজ ইউনিয়নের সমর্থকদের মধ্যে নানাভাবে নির্যাতন ও হয়রানি করা হচ্ছে। বরখাস্ত শ্রীতন কুমার দাশ ওই ইউনিয়নের সমর্থক। শুধু তাকে নয়, ওই ইউনিয়নের সমর্থক ইউনিয়নের সহ-সভাপতি বোর্ডের রেকর্ড সাপ্লায়ার মশিয়ার রহমানকে দারোয়ান, 

দেলোয়ার হোসেন দিলুকে দারোয়ান ও কর্মচারী মমতাজকেচেয়ারম্যানের বাসার স্ত্রী, ছেলে মেয়ে ও তার কাপড় চোপড় পরিস্কার করানোর কাজ করতে বাধ্য করা হচ্ছে।

অভিযোগ রয়েছে, বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. মোল্যা আমির হোসেন ইতোপূর্বে বোর্ডের সচিব হিসেবে কর্মরত থাকার সময় বিভিন্ন অনিয়ম ও দূর্নীতির অভিযোগে 

কর্মকর্তা কর্মচারীরা আন্দোলন, মিছিল মিটিং করেন। সে সময় তাকে (ওএসডি) বোর্ড থেকে প্রত্যাহার করে নেওয়া হয়। 

এরপর তিনি বোর্ডের চেয়ারম্যান হিসেবে নিয়োগ নিয়ে আসেন। এরপর তিনি ইতোপূর্বে তার বিরুদ্ধে আন্দোলনকারীদের বিরুদ্ধে প্রতিশোধ নেয়ার জন্য বরখাস্তসহ নানাভাবে প্রতি শোধের কাজ শুরু করেছেন।

শিক্ষাবোর্ডের এমপ্লয়ীজ ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান জানান, বোর্ডের চেয়ারম্যান সিবিএ নির্বাচনের আগে পরিকল্পিত ভাবে এমপ্লয়ীজ ইউনিয়নের নেতা, সমর্থক, কর্মীদের মধ্যে ভয়ভীতি দেখানোর জন্য এসব 

করছেন। যাতে নির্বাচনে প্রভাব পড়ে। এ বিষয়ে এমপ্লয়ীজ ইউনিয়নের পক্ষ থেকে লিখিত ভাবে জানানো হয়েছে। যার অনুলিপি শ্রম অধিদফতর খুলনায় দেয়া হয়েছে। তারা এখনো 

কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি।

শ্রম অধিদফতর খুলনার লেবার অফিসার মিজানুর রহমানের সাথে মোবাইল ফোনে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে 

তিনি ফোন রিসিভি করেননি।যশোর শিক্ষাবোর্ডের সচিব এএম এইচ আলী আর রেজা বোর্ডের চেয়ারম্যানের নির্দেশে ঝাড়–দার শ্রীতন কুমার দাসকে বহিস্কার করা হয়েছে। সচিব হিসেবে আমি দায়িত্ব 

পালন করেছি। বিস্তারিত জানতে হলে স্যারের সাথে কথা বলতে 

পারেন। যশোর শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. মোল্যা আমির হোসেনের সাথে মোবাইলে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি।শিক্ষাবোর্ডের এমপ্লয়ীজ ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক 

আসাদুজ্জামান -০১৭১৬২৬৮৫০২

লেবার অফিসার মিজানুর রহমান-০১৭১২৬১৭৫৯৭

যশোর শিক্ষাবোর্ডের সচিব এএম এইচ আলী আর রেজা -০১৭১২৬৬৭৪৯২

যশোর শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যান 

অধ্যাপক ড. মোল্যা আমির হোসেন -০১৭১১ ৫৩৫৪২১

চালিমিয়া পূর্ব পাড়া জামে মসজিদের উদ্যোগে সিরাতুন নবী (সঃ) পালন

চালিমিয়া পূর্ব পাড়া জামে মসজিদের উদ্যোগে সিরাতুন নবী (সঃ) পালন



মোঃআবু নাঈম কাজী,স্টাফ রিপোর্টারঃমাগুরা জেলার মহম্মদপুরের ১নং বাবুখালি ইউনিয়নের চালিমিয়া গ্রামের, চালিমিয়া পূর্ব পাড়া জামে মসজিদের উদ্যোগ সিরাতুন নবী (সঃ)পালিত হয়েছে, উক্ত অনুষ্ঠানে এলাকার সর্ব স্তরের জনগন উপস্থিত ছিলেন,তাছাড়া ও  অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ১নং বাবুখালি ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের বার বার নির্বাচিত মেম্বার মোঃ মতিয়ার রহমান, চালিমিয়া নুরানি হাফেজিয়া কওমি মাদ্রাসার প্রতিষ্ঠাতা, কাজী শাহাদৎ হোসেন, সাবেক  ইমাম মোঃ সফিকুল ইসলাম (রতন যোয়াদ্দার),সাংবাদিক মোঃকুতুবুল আলম,সাংবাদিক আবু নাঈম কাজী,সাংবাদিক ইসমাইল হোসেন, রামকৃষ্ণপুর হাফেজী কওমি মাদ্রাসার প্রধান মুয়াল্লিম মোঃমিরাজুল ইসলাম সহ, মহল্লার মুরব্বিগন,এবং উক্ত মসজিদের সম্মানিত সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান, সেক্রেটারি আব্দুল হক সহ মসজিদ মহল্লার সকল শ্রেনির ব্যাক্তি বর্গ উপস্থিত ছিলেন, সিরাতুন নবী (সঃ) অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন উক্ত মসজিদের ইমাম মোঃ ইসমাইল হোসেন, উক্ত অনুষ্ঠানে রাসুলুল্লাহ সাঃ এর জীবনী সম্পর্কে একটি কুইজ প্রতিযোগিতা ব্যাবস্থা করেন সাবেক ইমাম মোঃ সফিকুল ইসলাম, উক্ত প্রতিযোগিতায় প্রথম স্থান দখল করেন তুহিন ইবনে সফিক,

দ্বিতীয় স্থান দখল করেন মাসুম,

 এবং তৃতীয় স্থান দখল করেন নাসিব খান,

 রাসুলুল্লাহ সাঃ এর জীবনী, এবং সিরাতুন নবী সঃ সম্পর্কে  বিস্তারিত আলোচনা করেন হাফেজ মোঃমিরাজুল ইসলাম, চালিমিয়া নারানী হাফেজি কাওমি মাদ্রাসার প্রতিষ্ঠাতা মোঃ কাজী শাহাদাৎ হোসেন উক্ত অনুষ্ঠান সাব্বির হুসাইন পবিত্র কুরআন শরীফ থেকে তেলাওয়াত করেন,এবং দোয়া পরিচালনা করেন হাফেজ মোঃ শাহাদাৎ হোসেন,

ইসলামী আলোচনা

ইসলামী আলোচনা



প্রশ্নঃ বিয়ে ছাড়া প্রেম-ভালোবাসা/রিলেশান/এফেয়ার করা কি হারাম ?


উত্তরঃ হ্যা, অবশ্যই এটা হারাম।


১. প্রেম ভালোবাসা হয় – একজন আরেকজনের সাথে সরাসরি/ফোনে/ফেইসবুকে কথা বলে, দেখাসাক্ষাৎ করে। ইসলাম এইধরণের দেখা সাক্ষাত ও কথা বলা, যেখানে কামনা-বাসনা মিশ্রিত থাকে সেটাকে “যিনা” সাব্যস্ত করে হারাম করে দিয়েছে।

.

যিনা কি?

রাসুলুল্লাহ (সাঃ) বলেছেনঃ

“কোন বেগানা নারীর প্রতি দৃষ্টি দেওয়া চোখের যিনা, অশ্লীল কথাবার্তা বলা জিহ্বার যিনা, অবৈধভাবে কাউকে স্পর্শ করা হাতের যিনা, ব্যাভিচারের উদ্দেশ্যে হেঁটে যাওয়া পায়ের যিনা, খারাপ কথা শোনা কানের যিনা আর যিনার কল্পণা করা ও আকাংখা করা মনের যিনা। অতঃপর লজ্জাস্থান একে পূর্ণতা দেয় অথবা অসম্পূর্ণ রেখে দেয়”। [আল-বুখারী, সহীহ আল-মুসলিম, সুনানে আবু দাউদ, সুনানে আন-নাসায়ী।]

.

সমস্ত প্রকার যিনা হারামঃ

আল্লাহ তাআ’লা যিনাকে হারাম ঘোষণা করে বলেনঃ

“তোমরা যিনার কাছেও যাবে না। কেননা তা অত্যন্ত নির্লজ্জ এবং খারাপ কাজ”।

[সূরা বনী ইসরাঈলঃ ৩২]

.

রাসূলুল্লাহ্ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম  বলেছেনঃ

“কোন পুরুষ যখন একজন মহিলার সাথে নির্জনে মিলিত হয়, তখন তাদের তৃতীয় সঙ্গী হয় শয়তান।”

[তিরমিযী, মিশকাত]

.

২. বেগানা নারীকে স্পর্শ করা কতো বড়ো পাপ!!

“নিশ্চয়ই তোমাদের কারো মাথায় লোহার পেরেক ঠুকে দেয়া ঐ মহিলাকে স্পর্শ করা থেকে অনেক ভাল, যে তার জন্য হালাল নয়।” [তাবারানী, ছহীহুল জামে হাদীস -৪৯২১]

.

৩. আর এইরকম সম্পর্কের একটা পর্যায়ে (আগে হোক বা পরে) নারী পুরুষে যিনা-ব্যভিচারে জড়িয়ে পড়ে।

.

অবিবাহিত জেনাকারী ও জেনাকারিনীদের দুনিয়াবী শাস্তিঃ

“ব্যভিচারিণী নারী ব্যভিচারী পুরুষ; তাদের প্রত্যেককে একশ করে বেত্রাঘাত কর। আল্লাহর বিধান কার্যকর কারণে তাদের প্রতি যেন তোমাদের মনে দয়ার উদ্রেক না হয়, যদি তোমরা আল্লাহর প্রতি ও পরকালের প্রতি বিশ্বাসী হয়ে থাক। মুসলমানদের একটি দল যেন তাদের শাস্তি প্রত্যক্ষ করে”। [সুরা আন-নূর, আয়াত -২]

.

দুনিয়ার জীবনে বিবাহিত জেনাকারীদের চেয়ে অবিবাহিত জেনাকারীদের শাস্তি কম করা হয়েছে। কিন্তু তওবা করে ফিরে না আসলে পরকালে দুই দলের জন্যই রয়েছে কঠোর শাস্তি। তাদের উলংগ করে বড় একটা কড়াইয়ে পুড়ানো হবে। 

কিছুক্ষণ পরপর সেই আগুনের মাত্রা বাড়িয়ে দেওয়া হবে, আর জেনাকারীরা ছিটকে বের হয়ে আসতে চাইবে আগুন থেকে। কিন্তু তারা পালিয়ে যেতে পারবেনা, আবার তাদেরকে আগুনের মধ্যখানে নিয়ে আবার পুড়ানো হবে। জেনাকারী নারীর লজ্জাস্থানের দূর্গন্ধে পুরো জাহান্নামবাসীর জীবন অতিষ্ট হয়ে যাবে। সেটা তাদের জন্য অতিরিক্ত আরেকটা শাস্তি হবে।(নাউযুবিল্লাহ) জেনাকারী ও জেনাকারীদের তওবা করাই উচিত।

.

বিবাহিত জেনাকারী ও জেনাকারিনীদের দুনিয়াবী শাস্তিঃ

বিবাহিত নারী বা পুরুষ যদি জিনার অপরাধে জড়িয়ে পড়ে, আর তা ইসলামী বিচারালয়ে প্রমানিত হয় অথবা সে চারবার নিজে থেকেই স্বীকারোক্তি দেয় (শাস্তি মাথে পেতে নেওয়ার জন্য) – (২টার যেকোনো একটা হলেই শাস্তি প্রযোজ্য হবে) তাহলে তার শাস্তি হচ্ছে তাকে “রজম” বা পাথর ছুঁড়ে হত্যা করা হবেঃ

.

জাবির বিন আব্দুল্লাহ আল আনসারি (রাঃ) হতে বর্ণিত:

বনি আসলাম গোত্রের এক লোক রাসূলুল্লাহ (সাঃ) এর কাছে এসে জানালো যে সে জিনা করেছে এবং নিজের বিরূদ্ধে চার বার সাক্ষ্য দিল। রাসূলুল্লাহ (সাঃ) তাকে “রজম” বা প্রস্তরাঘাতে মৃত্যুর নির্দেশ দিলেন, কারণ সে বিবাহিত ছিল। [বুখারি ভলিউম ৮, বুক ৮২, নম্বর ৮০৫]

.

রজম প্রয়োগের এই ঘটনাটি বুখারির ৮টা, মুসলিমের ৯টা, আবু দাউদের ৪টা, মুয়াত্তা ইমাম মালিকের ২ টা সহ মোট ২৩ টা সহীহ হাদিসে বর্ণিত হয়েছে।

.

বিঃদ্রঃ জেনাকারী নারী বা পুরুষের এমন ধারণা পোষণ করা মোটেই ঠিকনা, আমাদের দেশে এই নিয়ম নাই – তাই আপাতত কিছু আনন্দ করে নেয়া যাক।

দুনিয়াতে শাস্তি না হলে পরকালের শাস্তি আরো ভয়ংকর। জাহান্নামের আগুনের কড়াইয়ে পুড়া কি ভয়ংকর হতে পারে? ৫ মিনিট চুলার আগুনে ছোট্ট একটা আঙ্গুল দিয়েই দেখতে পারেন সহ্য করতে পারেন কিনা?

.

কি কঠিন অবস্থা হবে আগুনের কড়াইয়ে যখন উলংগ করে পুড়ানো হবে যার আগুন দুনিয়ার আগুনের ৭০ গুণ আর যেই আগুন কখনো কমবেনা, না শাস্তি কমানো হবে! (নাউযুবিল্লাহি মিন যালিক)

.

যিনাকারীদের পরকালীন শাস্তিঃ

রাসুল (সাঃ) বলেছেনঃ “আমি স্বপ্নে একটি চুলা দেখতে পেলাম যার উপরের অংশ ছিল চাপা আর নিচের অংশ ছিল প্রশস্ত আর সেখানে আগুন উত্তপ্ত হচ্ছিল, ভিতরে নারী পুরুষরা চিল্লাচিল্লি করছিল। আগুনের শিখা উপরে আসলে তারা উপরে উঠছে, আবার আগুন স্তিমিত হলে তারা নিচে যাচ্ছিল, সর্বদা তাদের এ অবস্থা চলছিল, আমি জিবরীল আলাইহি ওয়াসাল্লাম কে জিজ্ঞেস করলামঃ এরা কারা? জিবরীল আলাইহি ওয়াসাল্লাম বললঃ তারা হল, অবৈধ যৌনচারকারী নারী ও পুরুষ।

সহীহ আল-বুখারী।

.

কথিত প্রেমিক আর প্রেমিকাদের একে অন্যের সাথে সমস্ত সম্পর্ক ছিন্ন করা উচিত। পরকালে ভালোবাসা নামক শয়তানী ধোঁকা থাকবেনা – শুধুই আগুন। আল্লাহর কসম! তখন এই প্রেমিক প্রেমিকারা একজন আরেকজনের শত্রু হয়ে যাবে। আর দুনিয়ার জীবনে একজন আরেকজনকে জেনা ব্যভিচারে বন্ধু হিসাবে নেওয়ার জন্য হাত কামড়িয়ে আফসোস করবে।

.

“জালেম সেদিন আপন হস্তদ্বয় দংশন করতে করতে বলবে, হায় আফসোস! আমি যদি রসূলের পথ অবলম্বন করতাম। হায় আমার দূর্ভাগ্য! আমি যদি অমুককে বন্ধু হিসেবে না নিতাম। আমার কাছে উপদেশ আসার পর সে আমাকে তা থেকে পথভ্রষ্ট করেছিল”।

সুরা আল-ফুরকান, আয়াত ২৭-২৯।

.

আল্লাহ আমাদের ও আমাদের পরিবারকে নিরাপদ রাখুন – আমিন।

এনডিবির আহবায়ক হলেন রানী বিশ্বাস

 এনডিবির আহবায়ক হলেন রানী বিশ্বাস

প্রেস বিজ্ঞপ্তিঃ সন্ত্রাস-নৈরাজ্য-ধর্ষণ-খুন-গুমের রাজনীতিকে ‘না’ বলে সুস্থ্য-সুন্দর-সততার রাজনৈতিকধারা চলমান রাখার লক্ষ্যে নতুনধারা বাংলাদেশ এনডিবি সারাদেশে সকল জেলা-উপজেলা কমিটি বিলুপ্তি ও নতুন কমিটি গঠন করছে।চলতি বর্ষের সেপ্টেম্বর থেকে ধারার চেয়ারম্যান মোমিন মেহেদী ঘোষিত এই কর্মসূচীর ধারাবাহিকতায় ৮ নভেম্বর বিকেল ৪ টায় রানী বিশ্বাসকে আহবায়ক করে ৭ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি অনুমোদন দেয়া হয়েছে। প্রেসিডিয়াম মেম্বার অধ্যাপক শুভঙ্কর দেবনাথ, সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান শান্তা ফারজানা ও মহাসচিব নিপুন মিস্ত্রী অনুমোদিত কমিটির অন্যান্যরা হলেন সালাউদ্দীন নিশান ও বুয়েটের সাবেক ছাত্রনেতা প্রকৌশলী জিনাত জাহান খানকে যুগ্ম আহবায়ক, সাব্বির চৌধুরী সদস্য সচিব, সদস্য সুভাষ নন্দী, দিঠি আহমেদ, শামীম জমাদ্দার ও সাকিলা ইয়াসমিন।


নতুন এই কমিটি প্রসঙ্গে নতুনধারা বাংলাদেশ এনডিবির চেয়ারম্যান মোমিন মেহেদী বলেছেন, সারাদেশে সত্যিকারের দেশ-মানুষ-সমাজ ও ধর্মপ্রেমিদেরকে ঐক্যবদ্ধ করে আগামী নির্বাচনে অংশ নেবে নতুনধারা বাংলাদেশ এনডিবি। দল-লীগ-পার্টির রাজনীতি জনগন দেখেছে, আগামী ধারার রাজনীতি তারা দেখবে না, হৃদয়ে লালন করবে।

উল্লেখ্য, রানী বিশ্বাস ছাত্রজীবনে নতুনধারা বাংলাদেশ এনডিবির সহযোগী সংগঠন ‘জাতীয় শিক্ষাধারা’ কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। 


১৯৯৭-৯৮শিক্ষাবর্ষের পুনর্মিলনী ২০২০ অনুষ্ঠিত

১৯৯৭-৯৮শিক্ষাবর্ষের পুনর্মিলনী ২০২০  অনুষ্ঠিত

 


মোঃ সবুজ মিয়া বগুড়া প্রতিনিধিঃ বগুড়া সরকারি আজিজুল হক বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ,শনিবার কলেজ ক্যাম্পাসে সমাজবিজ্ঞান বিভাগ প্রথম ব্যাচ (১৯৯৭-৯৮) শিক্ষাবর্ষের পুনর্মিলনী ২০২০  অনুষ্ঠিত হয়।  

এ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে গাউসুল আজমের সভাপতিত্বে ও আব্দুল হাদী প্রধানের সঞ্চালনায় আমন্ত্রিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন  প্রাক্তন সহকারী অধ্যাপক সমাজবিজ্ঞান বিভাগের শরীফা বেগম। বক্তব্য রাখেন, আব্দুল বারী, , ফিরোজ, মতিন, মাহফুজ মন্ডল, রাইসিল, রেক্সোনা,  সুরমা, সালাম, আনোয়ার জাহাঙ্গীর প্রমুখ।

সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসকের উদ্যোগে ঘর পাচ্ছেন বৃদ্ধ রইসউদ্দীন

সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসকের উদ্যোগে ঘর পাচ্ছেন বৃদ্ধ রইসউদ্দীন

আজহারুল ইসলাম সাদী, স্টাফ রিপোর্টারঃপ্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অঙ্গিকারে, সাতক্ষীরার মানবিক জেলা প্রশাসক এস এম মোস্তফা কামাল এর আরো একটি নজিরবিহীন দৃষ্টান্তমূলক কাজ সবাইকে তাক লাগিয়ে দিলেন! কিছু দিন আগে তিনি ফেসবুক এর মাধ্যমে জানতে পারেন, সাতক্ষীরা সদরের খানপুর গ্রামে, রইসউদ্দীন সরদার নামের এক বৃদ্ধের জীর্ণ শীর্ণ একটি ঘর, সেখানে, পরিবারের সবাইকে নিয়ে মাথা গুঁজে থাকতে কষ্ট হয়। 

সাতক্ষীরা' মানবিক জেলা প্রশাসক এস এম মোস্তফা কামাল এর বিষয়টি দৃষ্টি গোচর হলে, মুজিব বর্ষের অঙ্গীকার গৃহহীনের ঘর পাওয়ার অধিকার।তিনি তার কার্যালয়ে রইচউদ্দীন কে ডাকিয়ে তাকে ঘর করে দেয়ার প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেন।আর সেই প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নের লক্ষে, সাতক্ষীরা জেলার প্রথম ঘরটি নির্মাণ হতে যাচ্ছে।এর আগে রইচউদ্দীন এর জন্য সাতক্ষীরা সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার দেবাশীষ চৌধুরী কিছু নিত্য প্রয়োজনীয় উপহার সামগ্রী পাঠিয়ে দেন।রোববার (৮নভেম্বর) বিকালে জেলা প্রশাসক এস এম মোস্তফা কামাল, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার দেবাশীষ চৌধুরী পি আইও এয়ারুল হক, আকরামুল ইসলামসহ ছুটে যান সেই বৃদ্ধর জন্য নতুন ঘর তৈরির ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করতে, এসময় জেলা প্রশাসক নিজ হাতে কোদাল দিয়ে, মাটি কেটে, ঘরের ভিত্তিপ্রস্তরের কাজ করে উদ্বোধন করেন।১ লক্ষ ৭১ হাজার টাকা ব্যয়ে নির্মিত হবে এই ঘর।আর এই ঘর পাইয়ে দিতে যারা রইচউদ্দীন সরদার কে সহায়তা করেছেন তাদের নামা না বল্লে নয় তাদের মধ্যে আছেন, জাকির হোসেন, সরদার আবু সাইদ, মহিদুল ইসলাম ও শুভ' নাম  উল্লেখযোগ্য, জয় হোক এমন মানবতার প্রেমিকদের।

খুলনায় আজ থেকে মাস্ক না পরলেই জেল-জরিমানা

 খুলনায় আজ থেকে মাস্ক না পরলেই জেল-জরিমানা



তুহিন রানা (আব্রাহাম) ; খুলনা নগর প্রতিনিধিঃ

খুলনায় কাল থেকে মাস্ক না পরলেই জেল-জরিমানা করোনার দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবিলায় খুলনায় আজ থেকে মাস্ক না পরলেই জেল-জরিমানা করা হবে। রোববার (৮ নভেম্বর) দুপুরে জেলা আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভায় এ সিদ্ধান্ত হয়।জেলা প্রশাসক মো. হেলাল হোসেন জানান, জনবহুল স্থান ও গণপরিবহণে কেউ মাস্ক না পড়লে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে সাজা ও অর্থদণ্ড করা হবে। 

এছাড়া গণজমায়েত পরিহার ও গণপরিহনে মাস্ক ছাড়া যাত্রী না তুলতে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। সভায় জেলাজুড়ে জনসচেতনা বৃদ্ধিতে প্রচারণা চালানোর সিদ্ধান্ত হয়। একই সাথে সব উপজেলায় অক্সিজেন ব্যাংক ও হাইফ্লো ন্যাজাল ক্যানোলা স্থাপন নিশ্চিতের আশ্বাস দেয়া হয়েছে।

চৌগাছায় নিজ ধানক্ষেতে কৃষকের লাশ

 চৌগাছায় নিজ ধানক্ষেতে কৃষকের লাশ




স্টাফ রিপোর্টার  : যশোরের চৌগাছা উপজেলার দক্ষিণ কয়ারপাড়া গ্রামে পিকুল (৩২) নামে এক কৃষি দিনমজুর খুন হয়েছেন। অজ্ঞাত দুর্বৃত্তরা তাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যার পর মরদেহটি তার ধানক্ষেতেই ফেলে গেছে।খবর পেয়ে পুলিশ রোববার (৮ নভেম্বর) রাত সাড়ে দশটার দিকে মরদেহটি উদ্ধা্র করে।

চৌগাছা থানার ওসি রিফাত খান রাজিব জানান, পিকুল তার জমির ধান কাটতে রোববার সকালে বাড়ি থেকে বের হন। এরপর তিনি আর বাড়িতে ফিরে আসেননি। দিন গড়িয়ে সন্ধ্যা হওয়ায় পরিবারের লোকজন তাকে খুঁজতে বের হন। একপর্যায়ে তারা বাড়ির পাশের মাঠের নিজ ধানক্ষেতের মধ্যে তার লাশ দেখতে পায়। স্থানীয়দের দেওয়া খবরের ভিত্তিতে পুলিশ গিয়ে মরদেহটি নিজেদের হেফাজতে নেয়।

ওসি আরো বলেন, ‘নিহতের শরীরে ধারালো অস্ত্রের আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। কে বা কারা কি কারণে তাকে হত্যা করেছে তা জানা যায়নি। মরদেহটি উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। সকালে ময়নাতদন্তের জন্য যশোর জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হবে।’এছাড়া এ ঘটনায় জড়িতদের ধরতে পুলিশের একাধিক টিম কাজ শুরু করেছে বলে জানান ওসি। পরিবারের পক্ষ থেকে মামলা করার বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।নিহত পিকুল কয়ারপাড়া গ্রামের সাখাওয়াত হোসেনের ছেলে। তিনি এলাকায় নিরীহ লোক হিসেবে পরিচিত ছিলেন বলে স্থানীয়রা জানিয়েছে।

রাষ্টীয় মর্যাদায় মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার ফজল আহমেদের দাফন সম্পন্ন

 রাষ্টীয় মর্যাদায়  মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার ফজল আহমেদের দাফন সম্পন্ন




মোঃ আরিফুল ইসলাম,চট্টগ্রাম, প্রতিনিধিঃরাষ্ট্রীয় মর্যাদায় চিরনিদ্রায় শায়িত হলেন আনোয়ারা উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা ফজল আহমেদ।

জাতির এই বীর সন্তানকে রাষ্ট্রীয়  সম্মাননা হিসেবে আনোয়ারা ভূমি সহকারী (এসিল্যান্ড) জনাব তানভীর হোসেন এবং থানা অফিসার ইনচার্জ জনাব দুলাল মাহমুদের নেতৃত্বে গার্ড অব অনার প্রদর্শনপূর্বক নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। নামাজে জানাজা শুরুর পূর্বে মরহুমের জামাতা, ব্যাংকার মাউসুফ উদ্দিন মাসুমের সঞ্চালনায় এই বীর সন্তানের জীবনি নিয়ে সংক্ষিপ্ত কথামালা হয়। কথামালায় বীর মুক্তিযোদ্ধা ফজল আহমেদের জীবন নিয়ে কথা বলেন আনোয়ারা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ্ব তৌহিদুল হক চৌধুরী, আনোয়ারা উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক জনাব আব্দুল মালেক, স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান জনাব ইয়াছিন হীরু, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের ভারপ্রাপ্ত কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মান্নান, মরহুমের পরিবারের পক্ষ থেকে মরহুমের জীবনি নিয়ে কথামালা বলেন ভগ্নিপতি বিশিষ্ট শিল্পপতি, কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সন্মানিত সদস্য, মিডিয়া ব্যক্তিত্ব রোটারিয়ান জনাব মুহাম্মদ কামাল উদ্দিন, মরহুমের জ্যেষ্ঠ ভগ্নিপতি অবসরপ্রাপ্ত সরকারী কর্মকর্তা জনাব রাজা মিয়া। 

নামাজে জানাযায় অন্যান্যের মাঝে উপস্থিত ছিলেন আনোয়ারা উপজেলা আওয়ামীলীগের উপদেষ্টামন্ডলীর সদস্য জনাব মোঃ এয়াকুব চেয়ারম্যান, শামসুল ইসলাম চেয়ারম্যান, জনাব মোহাম্মদ আলী, ১নং বৈরাগ ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান জনাব সোলায়মান তালুকদার, ২নং বারাশত ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান জনাব এম এ কাইয়ুম শাহ, ৭নং আনোয়ারা সদর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান জনাব অসীম কুমার দেব, চৌদ্দগ্রাম উপজেলার সিওরা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান জনাব একরামুল হক, আওয়ামীলীগ নেতা আজিজুল হক চৌধুরী নসু, ৯নং পরৈকৌড়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক জনাব মোঃ শেলিম মামুন, দক্ষিন জেলা যুবলীগ নেতা আব্বাস আলী, ফরিদুল আলম টিপু, নজরুল ইসলাম, আনোয়ারা সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের প্রাক্তন সভাপতি এম নজরুল ইসলাম, প্রাক্তন সহ সভাপতি খোরশেদুল আলম সহ প্রমুখ।

নামাজে জানাযা শেষে মুক্তিযুদ্ধ সংসদসহ বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে পুষ্পমাল্য দিয়ে জাতির এই বীর সন্তানকে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়।

উল্লেখ্যঃ- জাতির এই শ্রেষ্ঠ সন্তান ১৯৫১ সালে আনোয়ারা থানার ডুমুরিয়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। মুক্তিযুদ্ধ পূর্ব তিনি পাকিস্তান সেনাবাহিনীতে কর্মরত ছিলেন। স্বাধীনতা যুদ্ধ শুরু হলে তিনি পাকিস্তান সেনাবাহিনী থেকে স্বেচ্ছায় অব্যহতি নিয়ে মহান মুক্তিযুদ্ধে সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করেন। মুক্তিযুদ্ধ পরবর্তী তিনি রাষ্ট্রীয় বিভিন্ন আন্দোলন সংগ্রামে অংশগ্রহণ করেন এবং সরব ভূমিকা রাখেন। ২০০৫ সালে মরহুম ফজল আহমেদ আনোয়ারা মুক্তিযুদ্ধ সংসদের কমান্ডার হিসেবে দায়িত্বপ্রাপ্ত হোন এবং দায়িত্ব নেয়ার পর মৃত্যু অব্দি তিনি আনোয়ারার প্রত্যন্ত অঞ্চলে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা মুক্তিযোদ্ধাদের ঐক্যবদ্ধ করার প্রয়াসে এবং তাদের সুখ দুঃখে সাংগঠনিকভাবে পাশে থাকা, ছায়া দেয়া এবং মুক্তিযোদ্ধাদের বিভিন্ন অধিকার প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে কাজ করেছিলেন। মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বিরোধীদের বিরুদ্ধেও তাঁর ভূয়সী ভূমিকা ছিল। 

গত শনিবার ৭ই নভেম্বর ২০২০ইং সন্ধ্যা ৬:৩০ মিনিটে তাঁর শহরের বাসভবনে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন জাতির এই বীর সন্তান। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, চার পুত্র সন্তান দুই কন্যা সন্তান সন্তুতিসহ অসংখ্য গুনগ্রাহি আর শুভাকাঙ্খী রেখে যান।