বাবাকে বাঁচাতে জবি শিক্ষার্থীর আকুতি

বাবাকে বাঁচাতে জবি শিক্ষার্থীর আকুতি




মেহেরাবুল ইসলাম সৌদিপ, জবি প্রতিনিধিঃ
জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় (জবি) এর মার্কেটিং বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী তরুণ সাহার বাবা তাপস সাহা দীর্ঘদিন যাবৎ মুত্রথলির ক্যান্সারে আক্রান্ত রয়েছেন। পরিবারের অর্থনৈতিক সংকট থাকায় প্রায় সাড়ে ৫  লক্ষ টাকার চিকিৎসা করার পর এখন দিশেহারা হয়ে পড়েছেন তিনি এবং তার পরিবার। কেমোথেরাপির জন্য এখনো দেড় লক্ষ টাকার প্রয়োজন।


পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, তরূণ সাহা ঢাকায় টিউশনি করে চলেন। তাদের ৪ সদস্যবিশিষ্ট পরিবার। তরুণ তার নিজের খরচে পড়াশুনা করে। তার বাবার একটি ছোট দোকান রয়েছে। এই দোকানের মধ্যমেই তাদের সংসার পরিচালিত হতো। এখন তার বাবার এ অবস্থায় দুশ্চিন্তায় পড়ে গেছে তরুণ সহ তার পুরো পরিবার।


তরুণ সাহার সাথে কথা বলে জানা যায়, তার বাবা তাপস সাহা গত বছরের ডিসেম্বর মাস থেকেই অসুস্থ ছিলেন। ঢাকায় চিকিৎসা দেয়ার পরও সুস্থ না হওয়ায় তার বাবাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে চিকিৎসার পর ঢাকায় এনে কেমোথেরাপি দেয়া হয়। কেমোথেরাপি এবং চিকিৎসা ব্যয় বাবদ সাড়ে ৫ লক্ষ টাকা খরচ হয়েছে। বাকি কোমোথেরাপির জন্য এখনো প্রায় ১,৫০,০০০ টাকার প্রয়োজন। বর্তমানে তিনি মাগুরায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছে। 
 

তরুণ সাহা তার বাবাকে বাঁচাতে সকলের কাছে অনুরোধ করে বলেন, আমার বাবা একজন সৎ  নিষ্ঠাবান বাক্তি। গত ৭ মাস আগে ওনার মুত্রথলিতে ক্যান্সার ধরা পরে। তার চিকিৎসা ব্যয় বাবদ ৫,৫০,০০০ টাকা খরচ হয়ে গিয়েছে। একটা মধ্যবিত্ত পরিবার, আর এতো টাকা অনেক বড় একটা বিষয়। আমাদের পরিবারে  আয় করার আর কেউ নেই । আয় করার মানুষটা রোগে ভুগছে। এখনো বাবার চিৎকিসা এবং কেমোথেরাপির জন্য ১,৫০,০০০ টাকার প্রয়োজন। করোনার এ সময়ে কোথাও থেকে টাকা জোগাড় করতে পারছি না। জানি না আর কেমোথেরাপি দিতে পারব কিনা। 


তরুণ সাহা আরো বলেন, অভাবের সংসারে বাবার চিকিৎসার জন্য বাড়ির শেষ সম্বলটুকু ও বিক্রি করে দিয়েছি। আমি আপনাদের কাছে আমার বাবার চিকিৎসার জন্য সাহায্য চাই। আপনারা সকলে সহযোগিতা করলে আমি আমার বাবাকে আবার বাবা বলে ডাকতে পারবো। আমার বাবার কিছু হলে আমাকে আমার পরিবারের হাল ধরতে হবে। আমার পড়াশোনা বন্ধ হয়ে যাবে। এমতাবস্থায় জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় উপাচার্য মহোদয় ও সমাজের বিত্তশালীদের সাহায্য ছাড়া বাবার চিকিৎসা করানো সম্ভব না। এখন আপনাদের সাহায্যই আমার বাবার চিকিৎসার শেষ ভরসা।


যোগাযোগঃ
তরুন সাহা
01725556529
সাহায্য পাঠাতেঃ
01725556529 (বিকাশ)
2671050002153 ( Duch Bangla Bank A/C)

মহম্মদপুরে সাইকেল দুর্ঘটনায় স্কুল ছাত্র নিহত

মহম্মদপুরে সাইকেল দুর্ঘটনায় স্কুল ছাত্র নিহত



মোঃকুতুবুল আলম
মহম্হদপুর(মাগুরা)

মাগুরা জেলার মহম্মদপুর উপজেলার চৌবাড়ীয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ২য় শ্রেণীর ছাত্র মোঃ সিয়াম (০৯) বাইসাইকেল দুর্ঘটনায়  নিহত হয়েছে । আজ রবিবার সন্ধ্যা ৬ টার সময় এ দুর্ঘটনা ঘটে  ৷ নিহত সিয়াম চৌবাড়ীয়া গ্রামের মনিরুল বিশ্বাসের ছেলে। স্থানীয় সূত্রে জানা যায় আজ রবিবার বিকাল আনুমানিক ৬ টার সময় সে নীজবাড়ি সংলগ্ন রাস্তা দিয়ে বাইসাইকেল চালাচ্ছিল। পেছন থেকে মটর সাইকেলের হর্ন শুনে তাড়াহুড়ো করে সাইড দিতে গিয়ে সাইকেলসহ  পড়ে যায় এবং নিজের সাইকেলের ব্রেকের হাতল তার বুকের বাম দিক দিয়ে বিধে যায়৷ স্থানীয় লোকজন ধরে চৌবাড়ীয়া বাজারে এনে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে মাগুরা হাসপাতালে নেয়ার পথে সে মারা যায়।   এ নিয়ে এলাকায় শোকের মাতম চলছে।

কুমিল্লার মুরাদনগরে মুক্তিযোদ্ধার সাংবাদিক পুত্রের ওপর চেয়ারম্যান বাহিনির সন্ত্রাসী হামলা

কুমিল্লার মুরাদনগরে মুক্তিযোদ্ধার সাংবাদিক পুত্রের ওপর চেয়ারম্যান বাহিনির সন্ত্রাসী হামলা




শাহ আলম জাহাঙ্গীর
ব্যুরো চিফ, কুমিল্লা
 
কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার কাজিয়াতল গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা আবদুল মতিন চৌধুরীর  পুত্র সাংবাদিক শরিফুল আলম চৌধুরীর ওপর বর্বরোচিত সন্ত্রাসী হামলা হয়েছে।
স্থানীয় দারোরা ইউপি চেয়ারম্যান শাহজাহানের সন্ত্রাসী বাহিনি বাড়িতে ঢুকে দা দিয়ে কুপিয়ে, হাতুড়ি ও লোহার পাইপ দিয়ে পিটিয়ে হাত-পা ভেঙ্গে দিয়েছে সাংবাদিক শরীফকে। তাকে বাঁচাতে গিয়ে শরীফের  মুক্তিযোদ্ধা বৃদ্ধ বাবা ও মা গুরতর আহত হয়। 
স্থানীয় সূত্র জানায় গতকাল শনিবার দুপুরে চেয়ারম্যান শাহজাহানের লোকজন বাড়িতে ঢুকে কিছু বুঝে ওঠার আগেই জোরপূর্বক টেনে হিঁচড়ে বের করে বাড়ির উঠানে এনে  দা দিয়ে কুপিয়ে, হাতুড়ি ও লোহার পাইপ দিয়ে পিটিয়ে সাংবাদিক শরীফের  দুই হাত পা ভেঙ্গে দেয়। দা দিয়ে তার মাথায় আঘাত করে আহত করে।
তাকে বাঁচাতে এগিয়ে গেলে রামদা দিয়ে বৃদ্ধ মুক্তিযোদ্ধা আবদুল মতিন চৌধুরীর ডান হাতে কোপ দেয় এবং রড দিয়ে পিটায়। তার মায়েরও বাম হাত ভেঙ্গে দেয়। হামলায় আহত সাংবাদিক শরীফের পিতা মুক্তিযোদ্ধা আবদুল মতিন চৌধুরী বলেন,  
নিরাপত্তার কথা চিন্তা করে আমার ছেলে শরীফ এতোদিন বাইরে ছিলো। গত সপ্তাহে শরীফ বাড়ি আসার খবর জানতে পেরে গতকাল দুপুরে  আমার বাড়িতে এসে  চেয়ারম্যানের লোকজন হামলা চালায়। চেয়ারম্যান বাহিনির ভয়ে কেউ আমাদের বাঁচাতে এগিয়ে আসার সাহস পায়নি। 
পরে গুরুতর আহত আমার ছেলেকে  মুরাদনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে আশংকাজনক অবস্থা  দেখে কর্তব্যরত চিকিৎসক দ্রত কুমিল্লা মেডিকেল হাসপাতালে প্রেরণ করেন। হামলার শিকার মুক্তিযোদ্ধা আবদুল মতিন চৌধুরী বলেন, চেয়ারম্যান শাহজাহানের দুর্নীতি, অনিয়ম ও স্বজনপ্রীতির বিরুদ্ধে  আমার ছেলে পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশের জের ধরে সন্ত্রাসী হামলা হয়। এ ঘটনার
উপযুক্ত বিচার চাই।
মুরাদনগর থানার ওসি এ.কে.এম মনজুর আলম উক্ত ঘটনায় জড়িত চেয়ারম্যান শাহাজাহানকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানান।বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মতিন  চৌধুরী বাদী হয়ে চেয়ারম্যান শাহজাহান সহ ৭জনের বিরুদ্ধে   মুরাদনগর থানায় মামলা হয়েছে। সাংবাদিক শরীফুল আলম চৌধুরীর ওপর  চেয়ারম্যান বাহিনির লোকজনের এমন বর্বরোচিত হামলা স্থানীয়  সাংবাদিক  ও সুশীল সমাজ  তীব্রনিন্দা ও দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করা হয়।

বিসিএস (৩৮তম) সুপারিশপ্রাপ্ত হয়ে কেশবপুরের নাম উজ্জ্বল করেছে ১১ জন মেধাবী

বিসিএস (৩৮তম) সুপারিশপ্রাপ্ত হয়ে কেশবপুরের নাম উজ্জ্বল করেছে ১১ জন মেধাবী




মোরশেদ আলম
যশোর ভ্রাম্যমাণ প্রতিনিধি 

যশোরের কেশবপুরে ৩৮ তম বিসিএসে সুপারিশ প্রাপ্ত হয়ে কেশবপুরের নাম উজ্জ্বল করেছে ১১জন মেধাবী, তাদের অধিকাংশই নিভৃতপল্লীর সাধারণ ও কৃষি পরিবারে জন্মগ্রহণ করেও মেধা ও যোগ্যতায় এ সাফল্য দেখিয়েছেন।

 বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস (বিসিএস) পরীক্ষার চুড়ান্ত ফলাফলে সারা দেশের যে ২ হাজার ২শ’ ৪ জনকে চাকরীতে নিয়োগের সুপারিশ করা হয়েছে তাদের মধ্যে কেশবপুর উপজেলারই রয়েছেন ১১ জন। পাবলিক সার্ভিস কমিশন (পিএসসি) এই ১১ জন ট্যাক্সেসান, প্রশাসন, পুলিশ, কৃষি, স্বাস্থ্য, বন ও শিক্ষা ক্যাডারে নিয়োগের সুপারিশ করেছে। এক সাথে এক উপজেলা থেকে এতগুলো মেধাবীর বিসিএস ক্যাডারে অন্তর্ভুক্ত হওয়ার সাফল্যে গত ৪দিন ধরে কেশবপুরের সর্ব মহল উৎসাহব্যঞ্জক আলোচনায় মুখরিত রয়েছে। ফেসবুকসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তাদেরকে অভিনন্দনের বন্যায় ভাসাচ্ছেন সবাই।

সংশ্লিষ্ট এধাধিক সূত্রে জানা গেছে, ট্যাক্সেসান (কর) ক্যাডারে সহকারী কমিশনার পদে সুপারিশকৃত মঞ্জুরুল আলম রাসেলের বাড়ি উপজেলার গৌরীঘোনা ইউনিয়নের ভেরচী গ্রামে। কেশবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের অবসরপ্রাপ্ত ইপিআই টেকনিশিয়ান আব্দুল জব্বারের একমাত্র ছেলে রাসেল।
 মা মমতাজ বেগম সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক এবং কেশবপুর পৌরসভার পশুহাট এলাকায় তাদের দীর্ঘদিনের বসবাস। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের লেদার ইন্সটিটিউটে সাফল্যের সাথে ফুটওয়ার ইঞ্জিনিয়ারিং লেখাপড়া শেষে অত্যন্ত মেধাবী রাসেল বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডে (বিআরইবি) সহকারী পরিচালক পদে কর্মরত। 

একই ইউনিয়নের গৌরীঘোনা গ্রামের অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক হরিপদ কুন্ডুর ছেলে মিঠুন কুমার কুন্ডু পুলিশ ক্যাডারে সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) পদে সুপারিশকৃত।

 অত্যন্ত মেধাবী মিঠুন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সাফল্যের সাথে লেখাপড়া শেষ করে সোনালী ব্যাংকের সিনিয়র অফিসার হিসেবে ফেনীতে কর্মরত।

 প্রশাসন ক্যাডারে সহকারী কমিশনার পদে সুপারিশকৃত শারমিন আক্তার রিমা কেশবপুর উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিসের অবসরপ্রাপ্ত অফিস সহকারী ও উপজেলা পাড়ার বাসিন্দা আব্দুল লতিফের মেয়ে। খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ফার্মেসী বিষয়ে অত্যন্ত সাফল্যের সাথে লেখাপড়া শেষে মেধাবী রিমার বিয়ে হয় ৩৩ তম বিসিএসের ডাক্তার নাহিদুল হকের সাথে।

 ফরেস্ট (বন) ক্যাডারে সহকারী বন সংরক্ষক পদে সুপারিশকৃত শামীম রেজা উপজেলা পাড়ার বাসিন্দা দন্ত চিকিৎসক মুনছুর রহমানের ছেলে। মেধাবী শামীম রেজা খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সয়েল ওয়াটার এন্ড ইনভারমেন্ট বিষয়ে অত্যন্ত সাফল্যের সাথে লেখাপড়া শেষে খুলনার হরিনটানা থানায় উপপরিদর্শক (এসআই) পদে কর্মরত আছেন। 

কৃষি ক্যাডারে কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা পদে সুপারিশপ্রাপ্ত আসাদুজ্জামান উপজেলার সাতবাড়িয়া ইউনিয়নের কোমরপোল গ্রামের আয়ুব আলীর ছেলে। অত্যন্ত মেধাবী আসাদুজ্জামান ময়মনসিংহ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে কৃষি বিষয়ে সাফল্যের সাথে লেখাপড়া শেষ করে বিসিএস পরীক্ষায় অংশ নিয়ে উত্তির্ণ হয়েছে। 


স্বাস্থ্য কৃষি ক্যাডারে সহকারী সার্জন পদে সুপারিশপ্রাপ্ত ডা. তুহিন পারভেজ জুয়েল রাজশাহী মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল থেকে এমবিবিএস পাশ ও ইন্টার্ণী করেছেন। কেশবপুরের সদর ইউনিয়নের রামচন্দ্রপুর গ্রামের পুলিশের সহকারী উপপরিদর্শক আসমত আলী মোল্যার ছেলে ডা. তুহিন পারভেজ বর্তমান ঢাকায় কর্মরত আছেন।

এ ছাড়াও এ উপজেলার টুম্পা সাহা, আবুল কালাম, রোকনুজ্জামান রোকন, রবিউল ইসলাম ও বুলবুল আহমেদ রিয়াদ শিক্ষা ক্যাডারে সুপারিশকৃত। কেশবপুর পৌরসভার ভোগতী কালাবাসা মোড় এলাকার মৃত গৌরঙ্গ সাহার মেয়ে অত্যন্ত মেধাবী টুম্পা সাহা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে দর্শন বিষয়ে সাফল্যের সাথে লেখাপড়া শেষ করে বিসিএস পরীক্ষায় অংশ নেয়। উপজেলার সদর ইউনিয়নের নতুন মূলগ্রামের কৃষক ও ক্ষুদ্র কাপড় ব্যবসায়ী সিদ্দিকুর রহমানের ছেলে আবুল কালাম সাফল্যের সাথে লেখাপড়া শেষ করে শরিয়তপুর একটি হাইস্কুলে শিক্ষাকতা করেন। সাগরদাঁড়ি ইউনিয়নের মির্জাপুর গ্রামের কৃষক ও ক্ষুদ্র কাঠ ব্যবসায়ী আব্দুর রহমান সরদারের ছেলে রোকনুজ্জামান রোকন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সাফল্যের সাথে লেখাপড়া শেষ করে বিসিএস পরীক্ষায় অংশ নেয়। উপজেলার বিদ্যানন্দকাটি ইউনিয়নের বাউশলা গ্রামের কৃষিজীবী নাসির উদ্দিনের ছেলে রবিউল ইসলাম ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইতিহাস বিষয়ে অত্যন্ত সাফল্যের সাথে লেখাপড়া শেষে কেশবপুরের গোবিন্দপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষক পদে কর্মরত।

 উপজেলার পাাঁজিয়া ইউনিয়নের সাগরদত্তকাটি গ্রামের কৃষক বজলুর রহমান গাজীর ছেলে বুলবুল আহমেদ রিয়াদ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অত্যন্ত সাফল্যের সাথে লেখাপড়া শেষ করে বিসিএস পরীক্ষায় অংশ নিয়েছিল।

করোনার ক্রান্তিলগ্নে এই সাফল্য কেশবপুরের সর্বস্তরের জনগণের মধ্যে নিয়ে এসেছে অনাবিল সুখের অনুভূতি

বাল্য বন্ধুর মৃত্যুতে শোকে বিহ্বল, বন্ধু পরিবারের দ্বায়িত্ব কাঁধে নিলেন - এমপি নাসির

বাল্য বন্ধুর মৃত্যুতে শোকে বিহ্বল, বন্ধু পরিবারের দ্বায়িত্ব কাঁধে নিলেন - এমপি নাসির






স্টাফ রিপোর্টারঃ বাল্য বন্ধুর মৃত্যুতে শোকে বিহ্বল, বন্ধু পরিবারের দ্বায়িত্ব কাঁধে নিলেন (চৌগাছা - ঝিকরগাছা ) আসনের জাতীয় সাংসদ বীর মুক্তিযোদ্ধা মেজর জেনারেল অবঃ অধ্যাপক ডাক্তার মোঃ নাসির উদ্দীন। যশোর জেলার ঝিকরগাছা উপজেলাধীন ১ নং গঙ্গানন্দপুর ইউনিয়নের ছুটিপুর গ্রামের মৃত মুলাম মিয়ার ছেলে নজরুল ইসলাম (৭০) আজ ৫ ই জুলাই রবিবার দুপুর ১২.৩০ টার সময় স্ট্রোক জনিত কারণে যশোর ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন (ইন্না-লিল্লাহ ---রাজিউন)।মৃত্যুকালে স্ত্রী, ১ছেলে, ১ মেয়ে সহ অসংখ্যক গুনগ্রাহী রেখে গেছেন। তার মৃত্যুর খবর শুনে তার বাল্য বন্ধু (চৌগাছা-ঝিকরগাছা )  আসনের জাতীয় সাংসদ বীর মুক্তিযোদ্ধা মেজর জেনারেল অবঃ অধ্যাপক ডাক্তার মোঃ নাসির মরহুমের বাসায় ছুটে যান। এ সময় তার বিদ্বেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা সহ তার রেখে যাওয়া পরিবারের দ্বায়িত্ব নিজের কাঁধে তুলে নেন।
এ সময় তার সাথে ছিলেন অত্র ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান  ও এমপি প্রতিনিধি মোঃ আমিনুর রহমান, দৈনিক কপোতাক্ষ নিউজ এর সম্পাদক ও প্রকাশক মোঃ মহসীন আলী  ( প্রভাষক) , উগজেলা ছাত্র লীগের সভাপতি এহসাহনুল হাবীব শিপলুসহ স্হানীয় নেতৃবৃন্দ  

ঝিনেদার আঞ্চলিক ভাষা গ্রুপের ৩য় প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত।

ঝিনেদার আঞ্চলিক ভাষা গ্রুপের ৩য় প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত।






খোন্দকার আব্দুল্লাহ বাশার, ঝিনাইদহ জেলা প্রতিনিধি 



ফেসবুক ভিত্তিক সমাজসেবা মুলক বৃহত্তর সংগঠন ঝিনেদার আঞ্চলিক ভাষা গ্রুপের ৩য় প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী অনেকটা নীরবে নিভৃত্তে রোববার পালিত হয়। করোনাকালীন সময়ে ঘরোয়া পরিবেশে সংগঠনের শেরেবাংলা সড়কস্থ অফিসে কেক কেটে গ্রুপের জন্মদিন পালন করা হয়। তবে পরিবেশ ছিল আনন্দঘন। বিকাল সাড়ে ৬টার দিকে গ্রুপের সভাপতি সাংবাদিক আসিফ কাজল কেক কেটে সবাইকে মুখে তুলে দেন। এ সময় গ্রুপের কর্মকর্তা সাইফুল ইসলাম লিকু, জাম্মিম সবুজ, মাসুদ রানা, সাইদুল ইসলাম টিটো, সোহাগ স্বপ্ন, মনিরা আক্তার, সরুভি রেজা, নিপা জামান ও ফিরোজা জামান আলো প্রমুখ। অনুষ্ঠানে সুদুর আমেরিকা থেকে লাইভে সরাসরি যুক্ত হন গ্রুপ ক্রিয়েটর ও সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক তরিকুল ইসলাম মিঠু। এদিকে গ্রুপের সভাপতি সাংবাদিক আসিফ কাজল ও গ্রুপ ক্রিয়েটর ও সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক তরিকুল ইসলাম মিঠু তৃতীয় প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর এই শুভক্ষনে গ্রুপ ও গ্রুপের বাইরে সবাইকে আন্তরিক ভাবে ধন্যবাদ জানান।

শৈলকুপার করোনায় মৃত ব্যাক্তির দাফনে দিলোনা খাটিয়া, আসলনা স্বজন

শৈলকুপার করোনায় মৃত ব্যাক্তির দাফনে দিলোনা খাটিয়া, আসলনা  স্বজন





সম্রাট হোসেন শৈলকুপা উপজেলা প্রতিনিধি( ঝিনাইদহ ) 

ঝিনাইদহ জেলার শৈলকুপা উপজেলায় ০৪/০৭/২০২০ তারিখে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ চিকিৎসাধীন অবস্থায় গোলাম সরোয়ার নামের এক জন মারা যায়। কিন্তুু তার লাশ দাফন করার জন্য গ্রামবাসী লাশ বহনের জন্য একটা খাটিয়া প্রদান করে না এবং একজন স্বজন ও তার লাশ দাফনে সাহায্য করেনা৷ এই খবর ছড়িয়ে পড়ার পর শৈলকুপা উপজেলার সকল মানুষের মনে প্রচন্ড ক্ষোভে সৃষ্টি হয়েছে। 

উল্লেখ্য, 

গতকাল করোনায়  আক্রান্ত হয়ে মো:গোলাম সরওয়ার মোর্শেদ,বয়স-৫২,পিতাঃ মৃতঃ রফিউদ্দিন মোল্লা, শৈলকুপা পৌরসভার মধ্যপাড়া,শৈলকুপা মারা যায়। তিনি ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার পদে বাংলাদেশ রেলওয়ে চট্টগ্রামে চাকুরীরত অবস্থায়  করোনা উপসর্গ দেখা দিলে গত ২৯/০৬/২০২০ তারিখ শৈলকুপা নিজ বাড়ীতে আসেন।শৈলকুপা উপজেলা স্বাস্হ্য কমপ্লেক্সে করোনা নমুনা পরীক্ষায় পজেটিভ আসায় চিকিৎসার জন্য ০১/০৭/২০২০ তারিখ কুষ্টিয়া সরকারী হাসপাতালে ভর্তি করা হয় । শারীরিক অবস্হার অবনতি হলে ০২/০৭/২০২০ তারিখ রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ভর্তি করা হয়।তিনি সেখানেই চিকিৎসাধীন অবস্হায় ০৪/৭/২০২০ তারিখ দুপুর ২.০০ টায় ইন্তেকাল করেন। উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে ইসলামিক ফাউন্ডেশন,শৈলকুপা, ঝিনাইদহ গঠিত লাশ দাফন কমিটির সদস্যগণের সহযোগিতায় জানাযা শেষে রাত ১২.৩০ টায় স্হানীয় গোরস্হানে দাফন কাজ সম্পন্ন করা হয়।

রোটারী ক্লাব অব রয়েলস এর প্রেসিডেন্ট হলেন সিনিয়র সাংবাদিক কাজী আবুল মনসুর

রোটারী ক্লাব অব রয়েলস এর প্রেসিডেন্ট হলেন সিনিয়র সাংবাদিক কাজী আবুল মনসুর




প্রেস বিজ্ঞপ্তি:-

চট্টগ্রামের সিনিয়র সাংবাদিক রোটারীয়ান কাজী আবুল মনসুর রোটারী ক্লাব অব চট্টগ্রাম রয়েলস এর প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করেছেন। পেশাগতভাবে তিনি একজন সাংবাদিক। ইতিমধ্যে চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের দুু’বার সিনিয়র সহ সভাপতি, একবার সহ সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। তিনি সাংবাদিক সংগঠন চট্টগ্রাম রিপোর্টার্স ফোরামের সভাপতি। কাজী আবুল মনসুর ১৯৯৭ সাল থেকে সাংবাদিকতা পেশার সাথে যুক্ত রয়েছেন। তিনি দৈনিক সমকাল, দৈনিক কালেরকন্ঠ ও দৈনিক আলোকিত বাংলাদেশে বিশেষ প্রতিনিধি ও ব্যুরো প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। বর্তমানে তিনি প্রতিদিনের সংবাদ এর উপ-সম্পাদক হিসেবে রয়েছেন। এছাড়াও তিনি রোটার‌্যক্ট আন্দোলনের সাথেও জড়িত ছিলেন। কাজী আবুল মনসুর চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় রোটার‌্যাক্ট ক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ও রোটারী ক্লাব গ্রেটার চিটাগাং এর সহ-সভাপতি হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেন। 

বর্তমানে তাঁর সাথে এ ক্লাবের সাধারন সম্পাদক হিসেবে রয়েছেন সরকারী চাকুরীজীবী ও চট্টগ্রাম কর কর্মচারী কল্যান সংসদের সভাপতি রোটারীয়ান কাজী ইকবালুর রহমান নাদিম। এ ক্লাবের উপদেষ্ঠা হিসেবে রয়েছেন সাবেক জেলা রোটারী গর্ভনর রোটারীয়ান অধ্যাপক তৈয়ব চৌধুরী।

কার্যকরী পরিষদের অন্যান্য কর্মকর্তারা হলেন নির্বাচিত সভাপতি রোটারীয়ান মামুনুর রশিদ মামুন, সদ্য অতীত সভাপতি রোটারীয়ান জামাল উদ্দিন আহমেদ, অতীত সভাপতি রোটারীয়ান জসিম উদ্দিন চৌধুরী, সহ-সভাপতি রোটারীয়ান ওয়াহেদুর রহমান, যুগ্ম সম্পাদক রোটারীয়ান গোলাম মোস্তাফা ইকবাল, কোষাধ্যক্ষ রোটারীয়ান মোহাম্মদ আবছার উদ্দিন, ক্লাব সেবা পরিচালক রোটারীয়ান সুজন কান্তি চৌধুরী, সমাজসেবা পরিচালক রোটারীয়ান শহীদুল হক, পেশা উন্নয়ন পরিচালক রোটারীয়ান মীর মোহাম্মদ নাজমুল আলম, আন্তর্জাতিক সেবা পরিচালক রোটারীয়ান মালিক মোহাম্মদ ওমর, ইয়ুথ সার্ভিস পরিচালক রোটারীয়ান গিয়াস উদ্দিন আহমেদ চৌধুরী, বুলেটিন এডিটর রোটারীয়ান আহমেদ মুনির উদ্দিন, সার্জেন্ট এট আর্মস রোটারীয়ান আবু নাসের ও সহ-সার্জেন্ট এট আর্মস দিদারুল আলম।

মাদরাসা ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে ইমাম জেলহাজতে

মাদরাসা ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে ইমাম জেলহাজতে





মো:লাতিফুল আজম
কিশোরগঞ্জ নীলফামারী প্রতিনিধি 

নীলফামারীর ডোমারে দুই মাদরাসা ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে আলী আকবর(৫৬) নামে এক ইমামকে আটক করেছে পুলিশ।

রোববার (৫ জুলাই) দুপুরে আদালতের মাধ্যমে তাকে জেলা কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে।

এর আগে গত শনিবার মধ্যরাতে বোড়াগাড়ী ইউনিয়নের নওদাবস হাজীপাড়া জামে মসজিদের পাশ থেকে তাকে আটক করা হয়।

আলী আকবর ডিমলা উপজেলার নাউতারা ইউনিয়নের আকাশকুড়ি গ্রামের মৃত. ঘিনা মামুদের ছেলে। নওদাবস হাজীপাড়া জামে মসজিদে ইমাম হিসেবে দায়িত্ব পালন করছিলেন তিনি।

পুলিশ জানায়, শনিবার সকালে মক্তব পড়ানো শেষে এগার বছরের এক শারীরিক প্রতিবন্ধী এবং তৃতীয় শ্রেণির এক ছাত্রীকে ইমাম তার ঘরে ডেকে নেন। এরপর সেখানে শিশু দু’টিকে ধর্ষণ করে ইমাম।

প্রতিবন্ধী শিশুটি বিষয়টি তার মাকে জানালে অপর মেয়েটিও বিষয়টি প্রকাশ করে। রাতেই আলী আকবরকে আটক করা হয়।

ডোমার থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) মোস্তাফিজার রহমান জানান, প্রতিবন্ধী শিশুটির মা বাদি হয়ে একটি ধর্ষণ মামলা করেছেন। এই মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে ইমামকে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

শিশু দুটির ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য নীলফামারী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে বলে জানান ওসি।

শোভনালীতে মাতৃত্বকালীন ভাতার টাকা প্রদান

শোভনালীতে মাতৃত্বকালীন   ভাতার টাকা প্রদান




আহসান উল্লাহ বাবলু ,আশাশুনি ( সাতক্ষীরা) প্রতিনিধি   ঃ আশাশুনি উপজেলার শোভনালী ইউনিয়নে মাতৃত্বকালীন ভাতাভোগিদের মাঝে ভাতার টাকা প্রদান করা হয়েছে। রবিবার ইউনিয়ন পরিষদ হল রুমে এ টাকা বিতরণ করা হয়। 

শোভনালী ইউনিয়ন পরিষদের ৫, ৬, ৭, ৮ ও ৯ নং ওয়ার্ডের ৪৭ জন ভাতাভোগিকে প্রত্যেককে ৩ মাসের ভাতা বাবদ ৭ হাজার ২ টাকা করে প্রদান করা হয়। ব্যাংক এশিয়া এজেন্ট ব্যাংক এর মাধ্যমে ডিজিটাল সেন্টার থেকে মাতৃত্বভাতা প্রদান করা হয়। ভাতা প্রদানের উদ্বোধন করেন, ইউপি চেয়ারম্যান প্রভাষক ম. মোনায়ে হোসেন। এসময় ইউপি সদস্য উদয় কান্তি বাছাড়, ইউপি সদস্য আজিজুল রহমান ও মহিলা মেম্বার পূর্ণিমা রানী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

আশাশুনিতে ডাঃ সুদেষ্ণা সরকারের নমুনা সংগ্রহের ঘোষণা

আশাশুনিতে ডাঃ সুদেষ্ণা সরকারের নমুনা সংগ্রহের ঘোষণা




আহসান উল্লাহ বাবলু, আশাশুনি ( সাতক্ষীরা) প্রতিনিধিঃ  

আশাশুনিতে করোনা ভাইরাসের নমুনা সংগ্রহের নতুন সিদ্ধান্তের ঘোষণা দিলেন ডাঃসুদেষ্ণা সরকার।করোনা ভাইরাস এর সংক্রমণ প্রতিরোধে সরকারের সিদ্ধান্ত মোতাবেক আশাশুনিতে নমুনা সংগ্রহের জন্য জনসাধারণকে নিয়ম অবহিত করতে ঘোষণা প্রচার করেছেন। রবিবার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের পক্ষ থেকে এ ঘোষণা প্রচার করা হয়। আশাশুনি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ সুদেষ্ণা সরকার এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন, স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নমুনা সংগ্রহ বুথে প্রতি সপ্তাহে রবি, সোম ও বুধবার (৩ দিন) দুপুর ১১ টা থেকে ১ টা পর্যন্ত নমুনা সংগ্রহ করা হবে। নমুনা দিতে আগ্রহীদেরকে সরকার নির্ধারিত ইউজার ফি অনুযায়ী বুথ থেকে নমুনা সংগ্রহের জন্য ২০০ টাকা ফি জমা দিতে হবে। নমুনা প্রদানকারীকে টাকা প্রদানের পর অবশ্যই রশিদ সংরক্ষণ করতে হবে। নমুনা প্রদানে ইচ্ছুক যে কেউকে নমুনা প্রদানের পূর্বে অবশ্যই সকাল ১০টার মধ্যে রেজিষ্ট্রেশন করাতে হবে। রেজিষ্ট্রেশনের জন্য আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডাঃ দীপন বিশ্বাস (মোবাইলঃ ০১৭৫৫৮৯৬২১০) যোগাযোগ করতে হবে। তবে শুধুমাত্র শয্যাশায়ী, লকডাউন অঞ্চল ও হোম আইসোলেশনে থাকা রোগীদের ক্ষেত্রে বিশেষ বিবেচনায় বাসায় যেয়ে নমুনা সংগ্রহের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। এক্ষেত্রে অনুগ্রহপূর্বক কেউ বিভ্রান্ত না ছড়িয়ে সকলকে সহযোগিতা করার জন্য তিনি অনুরোধ জানিয়েছেন।

চমেক হাসপাতালে জীবাণুনাশক স্প্রে করছে রেড ক্রিসেন্ট চট্টগ্রাম

চমেক হাসপাতালে জীবাণুনাশক  স্প্রে করছে রেড ক্রিসেন্ট চট্টগ্রাম



রিয়াজুল করিম রিজভী প্রতিনিধি চট্টগ্রামঃ-

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে অন্যতম উপকরণ হচ্ছে জীবাণুনাশক স্প্রে। জীবাণুনাশক স্প্রে মেশিন কাধেঁ নিয়ে বিভিন্ন প্রান্তে, রাস্তা-ঘাটে, বাজার চত্বরে বা ঘনবসতিপূর্ণ এলাকায় মানুষের কল্যাণে প্রতিনিয়ত বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ন স্থানে জীবাণুনাশক করছে রেড ক্রিসেন্ট চট্টগ্রামের স্বেচ্ছাসেবকরা। বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি চট্টগ্রাম জেলা ও সিটি ইউনিটের উদ্যোগে যুব রেড ক্রিসেন্ট, চট্টগ্রামের বাস্তবায়নে বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির ম্যানেজিং বোর্ড সদস্য ও চট্টগ্রাম জেলা ইউনিটের ভাইস চেয়ারম্যান ডা. শেখ শফিউল আজম ও  চট্টগ্রাম সিটি ইউনিটের ভাইস চেয়ারম্যান এম. এ. ছালাম এর দক্ষ দিকনির্দেশনায় প্রতিদিনের ধারাবাহিকতায় আজ ৫ জুন রবিবার যুব রেড ক্রিসেন্ট, চট্টগ্রামের যুব প্রধান মোঃ ইসমাইল হক চৌধুরী ফয়সাল এর নেতৃতে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রোগী বহন কাজে ব্যবহৃত হুইল চেয়ারে, ট্রলিসহ বিভিন্ন উপকরণে, জরুরী বিভাগের বিভিন্ন রুমে জীবাণুনাশক স্প্রে কার্যক্রম পরিচালনা করা হয়। উক্ত কার্যক্রমে উপস্থিত ছিলেন যুব রেড ক্রিসেন্ট, চট্টগ্রামের কার্যকরী পর্ষদ সদস্য ইস্তাকুল ইসলাম চৌধুরী ঈশান সহ যুব স্বেচ্ছাসেবকরা।

জলঢাকা গোলনা ইসলামিয়া ফাজিল মাদরাসার চার তলা একাডেমিক ভবনের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন:

জলঢাকা গোলনা ইসলামিয়া ফাজিল মাদরাসার চার তলা একাডেমিক ভবনের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন:




মোঃ হাবিবুর রহমান শাকিল  নীলফামারী প্রতিনিধি:


জলঢাকা উপজেলার গোলনা ইসলামিয়া ফাজিল মাদরাসার চার তলা একাডেমিক ভবনের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করলেন জাতীয় পার্টির নীলফামারীর-০৩ আসনের সংসদ সদস্য মেজর (অবঃ) রানা মোহাম্মদ সোহেল এমপি। আজ রোববার দুপুরে গোলনা ইসলামিয়া ফাজিল মাদরাসার চার তলা একাডেমিক ভবনের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করেন তিনি। এসময় উপস্থিত ছিলেন, গোলনা ইউপি চেয়ারম্যান কামরুল আলম কবীর, ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মাওলানা হোসাইন আহম্মেদ, উপজেলা জাতীয় পার্টির নেতা বাবলুর রহমান, রাশেদ চৌধুরী, মিজানুর রহমান, তাহমিদার রহমান মিলন, উপজেলা জাতীয় ছাত্রসমাজের আহবায়ক আনোয়ার হোসেন ও ঠিকাদারী প্রতিষ্টানের ম্যানেজার প্রকৌশলী এমডি মনিরুল ইসলামসহ ইউনিয়ন নেতৃবৃন্দ। মাদরাসা শিক্ষা অধিদপ্তর ও শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের বাস্তবায়নে ২ কোটি ৯৩ লক্ষ ৪৪ হাজার ৯ শত ৬১ টাকা এই চার তলা ভবনটি নির্মাণ করা হবে।

ডোমারে নদীতে নিখোঁজ দুই শিশুর মধ্যে ১ জনের মৃত্যুদেহ উদ্ধার

ডোমারে নদীতে নিখোঁজ দুই শিশুর মধ্যে ১ জনের মৃত্যুদেহ উদ্ধার





মোঃ হাবিবুর রহমান শাকিল নীলফামারী প্রতিনিধি:

 নীলফামারীর ডোমার উপজেলার গোমনাতী ইউনিয়নের পাঙ্গা নদীতে শুক্রবার দুপুরে নিখোঁজ হয়েছিল খালাতো ভাই বোন মনোয়ার হোসেন (৬) ও নূরে জান্নাত মনি (৫) নামের দুই শিশু। এ ঘটনার দুইদিন পর রবিবার দুপুরে ঘটনাস্থল থেকে নদীর দুই কিলোমিটার ভাটির দিকে বামুনিয়া ইউনিয়নের পূর্ব বারবিশা গ্রামে ফান্দুল তেলির ঘাট নামক স্থানে মনোয়ার হোসেনের লাশ ভাসতে দেখে এলাকাবাসী লাশ নদী হতে উদ্ধার করে। পুলিশ এসে শিশুটির লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করে। উদ্ধার হওয়া মনোয়ার গোমনাতী ইউনিয়নের উত্তর গোমনাতী গ্রামের সুরুজ্জামানের ছেলে। তবে এখনো উদ্ধার হয়নি মনোয়ারের খালাতো বোন নূরে জান্নাত মনি। মনি একই উপজেলার জোড়াবাড়ী ইউনিয়নের মিরজাগঞ্জ বিএসসি পাড়ার গোলাম রব্বানীর মেয়ে। পুলিশ জানায়, শুক্রবার (৩ জুলাই) বেলা সাড়ে ১২টার দিকে গোমনাতী ইউনিয়নের আমবাড়ী হাটের অদুরে পাঙ্গা নদীর একটি ঝুঁকিপূর্ণ সেতু পার হওয়ার সময় রিক্সাভ্যান উল্টে গেলে শিশু মানোয়ার হোসেন ও নূরে জান্নাত মনি নদীতে পড়ে নিখোঁজ হয়। তারা নানা ময়নুল হকের সঙ্গে জোড়াবাড়ী ইউনিয়নের মিরজাগঞ্জ গ্রামে যাচ্ছিল। এসময় পথে ওই দূর্ঘটনা ঘটে। ডোমার থানার ওসি মোস্তফিজার রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন।

ডোমারে প্রতিবন্ধী শিশুসহ দুই শিশু ধর্ষণের অভিযোগে মসজিদের ইমাম গ্রেফতার!

ডোমারে প্রতিবন্ধী শিশুসহ দুই শিশু ধর্ষণের অভিযোগে মসজিদের ইমাম গ্রেফতার!




মোঃ হাবিবুর রহমান শাকিল ডিমলা নীলফামারী প্রতিনিধি:

 মসজিদে সকালে শিশুদের মক্তব পড়া শেষে কৌশলে প্রতিবন্ধী শিশুসহ দুইশিশুকে ধর্ষণ করার অভিযোগে নীলফামারীর ডোমার উপজেলায় আলী আকবর (৫৬) নামের এক ইমামকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। শনিবার (০৪ জুলাই) রাত ১২ টায় উপজেলার বোড়াগাড়ী ইউনিয়নের নওদাবস এলাকায় হাজী পাড়া জামে মসজিদের পাশে হতে ওই মসজিদের ইমামকে ডোমার থানা পুলিশ গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে আসে। রবিবার সকাল ১০টায় আদালতের মাধ্যমে তাকে জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে। গ্রেফতার আলী আকবর পাশ্ববর্তী ডিমলা উপজেলার আকাশকুড়ি এলাকার মৃত ঘিনা মামুদের ছেলে। ডোমার থানার অফিসার ইনচার্জ মোস্তাফিজার রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, প্রতিবন্ধি শিশুটির মা বাদি হয়ে একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেছে। মামলা সুত্রে জানা গেছে, উপজেলার বোড়াগাড়ী ইউনিয়নের নওদাবস এলাকার একটি মসজিদের ইমাম আলী আকবর সকালে ওই এলাকার শিশুদের মসজিদের ভিতরে মক্তব পড়ান। শনিবার সকালে মক্তবের ছুটি হলে, ১১ বছরের প্রতিবন্ধি শিশু ও ৩য় শ্রেণির এক ছাত্রীসহ দুই শিশুকে তিনি মসজিদের পাশে তার থাকার ঘরে নিয়ে যায়। এরপর তাদের পালাক্রমে ধর্ষন করে। শিশু দু’টি ধর্ষনের বিষয়টি যেন কাউকে না জানায়, সেজন্য ভয়ভীতি দেখায়। প্রতিবন্ধি শিশুটি তার মাকে ধর্ষনের বর্ণনা দিয়ে ব্যথা হওয়ার কথা জানান। এসময় তৃতীয় শ্রেণির ছাত্রীটিও ধর্ষনের বিষয়টি প্রকাশ করে। এলাকাবাসী আলী আকবরকে রাতে আটক করে থানায় খবর দেয়। দ্রুত ডোমার থানার অফিসার ইনচার্জ মোস্তাফিজার রহমান সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে তাকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে। ওসি মোস্তাফিজার রহমান জানান, ধর্ষিতা শিশুদের উদ্ধার করে রাতেই নীলফামারী সদর আধুনিক হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করা হয়েছে। এসময় অভিযুক্ত ধর্ষক আলী আকবর এলাকাবাসীর সামনে নিজের দোষ স্বীকার করেন।

নাগরপুরে রির্সোস টিচার(আরটি)দের মাঝে করোনা প্রতিরোধক হোমিও মেডিসিন আর্সেনিক এ্যালবাম-৩০ বিতরণ

নাগরপুরে রির্সোস টিচার(আরটি)দের মাঝে করোনা প্রতিরোধক হোমিও মেডিসিন আর্সেনিক এ্যালবাম-৩০ বিতরণ




হাসান সাদী নাগরপুর(টাংগাইল)প্রতিনিধি:
আহাম্মদ হোসেন হোমিও ক্লিনিকের উদ্যোগে ও প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান ও বিশিষ্ট হোমিওপ্যাথিক কনসালটেন্ট ডা.এম.এ.মান্নান(আরটি) এর নিজস্ব অর্থায়নে নাগরপুরে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কর্মরত রিসোর্স টিচার(আরটি)দের মাঝে মহামারী করোনা ভাইরাস প্রতিরোধের জন্য প্রতিরোধক বা ইমিউনিটি বুষ্টার হোমিও ওষুধ আর্সেনিকাম এ্যালবাম ৩০ শক্তি  ফ্রি বিতরণ করা হয়।

আজ রবিবার,৫ জুলাই ২০২০ খ্রি.বিকাল ৪.৩০ মিনিটে নাগরপুর নব মরিয়ম হোমিও হলে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধক হোমিও ওষুধ আর্সেনিকাম এ্যালবাম ৩০ বিতরণ অনুষ্ঠান হয়।

আরটি শিক্ষকদের মাঝে করোনা প্রতিরোধক হোমিও মেডিসিন আর্সেনিকাম এ্যালবাম-৩০ বিতরন কালে 
 ডা.এম.এ.মান্নান বলেন-আমি করোনা প্রতিরোধে আমার নিজস্ব উদ্যোগে নাগরপুরে কাজ করে যাচ্ছি। আমি বিভিন্ন সময়ে নাগরপুর বাসীর মাঝে মাস্ক,সাবান,হ্যান্ডস্যানিটাইজার, মেডিসিন বিতরণ করেছি এবং অসহায়,কর্মহীনদের মাঝে খাদ্য সামগ্রী ও ছাত্রদের মাঝে শিক্ষা উপকরন বিতরন করেছি যা নাগরপুর বাসী অবগত আছে এবং বিভিন্ন মিডিয়ায় প্রকাশ হয়েছে। তারই ধারাবাহিক হিসাবে আমার প্রিয় স্যার ডা.তোফাজ্জল স্যার,ডা.কায়েম স্যারের পরামর্শে নাগরপুরবাসীর জন্য করোনা প্রতিরোধক হোমিও মেডিসিন Ars.Alb.30 বিতরনের কর্মসৃচী গ্রহন করে বিভিন্ন পেশার মানুষের মাঝে করোনা প্রতিরোধক হোমিও মেডিসিন আর্সেনিকাম এ্যালবাম বিতরন করে আসছি। আজ আমার সহকর্মী আরটি স্যারদের মাঝে করোনা প্রতিরোধক মেডিসিন হস্তান্তর করতে পেয়ে, মহান আল্লাহ দরবারে শুকুরিয়া আদায় করছি, আলহামদুলিল্লাহ। আমি নাগরপুরে ১০০০ হাজার পরিবারকে  ফ্রি হোমিও প্রতিরোধক মেডিসিন Arsenic Alb-30  দিব।এখন পর্যন্ত ৯২৪ টি পরিবারকে আর্সেনিক এ্যালবাম দিয়েছি।  সবাই আমার জন্য দোয়া করবেন আমি যেন আপনাদের পাশে থেকে দেশ ও মানুষের সেবা করতে পারি। সবাই ভাল থাকেন সুস্হ থাকেন,আল্লাহ হাফেজ।

সেবনবিধি:-পর পর তিনদিন সকালে বাসীপেটে ৪/৫ টি করে বড়ি সেব্য। 

আর্সেনিকাম এ্যালবাম ৩০ শক্তি বিতরন অনুষ্ঠানে উপস্হিত ছিলেন-মরিয়ম হোমিও হলের পরিচালক ডা.মো.সিদ্দিক মিয়া(বীরমুক্তিযোদ্ধা)

শিক্ষকদের মধ্যে উপস্হিত ছিলেন- সুদাম পাড়া মুক্তিযোদ্ধা  উচ্চ বিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের রির্সোস শিক্ষক মো.সাজেদুল ইসলাম সবুজ এবং  ঘুণীপাড়া আব্দুল রশিদ স্কুল এন্ড কলেজের গনিত বিভাগের রির্সোস শিক্ষক জ্বনাব আপেল মাহমুদ  প্রমুখ।

মাধবপুরে শক্তিশালি করোনার থাবায় উপজেলা স্বাস্থ্যকর্মীসহ নতুন করে আরও ৯জনের করোনা শনাক্ত

মাধবপুরে শক্তিশালি করোনার থাবায় উপজেলা স্বাস্থ্যকর্মীসহ নতুন করে আরও ৯জনের করোনা শনাক্ত


,

লিটন পাঠান হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি

হবিগঞ্জের মাধবপুরে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্যকর্মীসহ গত ২৪ ঘণ্টায় শক্তিশালি করোনার থাবায় নতুন করে আরও ৯জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে, এ নিয়ে মাধবপুর উপজেলায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল ১২২ জন সুস্থ হয়েছেন ৫১ জন মৃত্যু হয়েছে ১ জনের।

সূত্র জানায়, নতুন করে আক্রান্তের মধ্যে রয়েছেন মাধবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্যকর্মী ৩জন,
ধর্মঘর১জন চৌমুহনী ১জন জগদীশপুর ১জন নোয়াপাড়া ১জন, শাহজাহানপুর১জন ও সাতবর্গ ১জন সহ  নতুন করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন মাধবপুর উপজেলা স্বাস্থ্যও পরিবার,

পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা.এএইচএম ইশতিয়াক মামুন বলেন, রবিবার (৫জুলাই) দুপুরে  ঢাকা থেকে আসা তাদের রিপোর্ট পজিটিভ আসে। উপজেলায় এ পর্যন্ত ৬৮১ জনের কভিট-১৯ (করোনাভাইরাস) নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষা করা হয়েছে, তার মধ্যে ১২২ জনের নমুনা পজিটিভ এসেছে।

কাজিপুরে বাড়ির বারান্দায় বেড়া দেয়া নিয়ে বিরোধে প্রতিপক্ষের হাতে কৃষক খুন

কাজিপুরে বাড়ির বারান্দায় বেড়া দেয়া নিয়ে বিরোধে প্রতিপক্ষের হাতে কৃষক খুন



মাসুদ রানা সিরাজগঞ্জ জেলাপ্রতিনিধি ঃ
  কাজীপুরে ঘরের বারান্দায় বেড়া দেয়া নিয়ে বিরোধে আব্দুল বাসেদ ৪৫  নামের এক কৃষক  প্রতিপক্ষের হাতে খুন হয়েছে। নিহত আব্দুল বাসেদ উপজেলার গান্ধাইল ইউনিয়নের পাটাগ্রামের মৃত হোসেন আলীর পুত্র। ঘটনাটি ঘটেছে গত ৫ জুলাই রবিবার দুপুরে পাটাগ্রামের   নিহতের  নিজ বাড়িতে। 
সরেজমিনে গিয়ে নিহতের পরিবার ও  পত্যক্ষদর্শি সূত্রে জানা গেছে, নিহতের চাচাতভাই মৃত আমাজাদ আলীর পুত্র আনোয়ার হোসেনের ঘরের বারান্দায় একটি বেড়া দেয়া হয়। এতে নিহতের পরিবারের যাতায়াতের সমস্য সৃষ্ঠি হয়। ঘটনার সময়ে  আনোয়ারের অনুপোস্থিতিতে এ নিয়ে তাঁর  ছোট ভাই ঘাতক শাহিনের সাথে নিহত  বাসেদের কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে শাহিনের  হাতে থাকা খরকাটার কাচি দিয়ে বাসেদের  গলায় হ্যাচকা টান দিলে গলাকেটে দুভাগ হয়ে বাসেদ  ঘটনাস্থলে মারা যায়। কাজীপুর থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য সিরাজগঞ্জ মর্গে প্রেরণকরা হয়েছে। এ বিষয়ে হত্যা মামলার  প্রস্তস্তি চলছে।

রাণীনগরে বাড়ছে নদীর পানি, বেড়িবাঁধ নিয়ে আতঙ্ক!

রাণীনগরে বাড়ছে নদীর পানি, বেড়িবাঁধ নিয়ে আতঙ্ক!




মোঃ ফিরোজ হোসাইন 
রাজশাহী ব্যুরো

রাণীনগর প্রতিনিধি ---  গত বছরের প্রবল বন্যায় নওগাঁর রাণীনগর উপজেলার ছোট যমুনা নদীর নান্দাইবাড়ি-কৃষ্ণপুর বেড়িবাঁধ ভেঙে গেলেও এক বছরে মেরামত করেনি কেউ। ফলে নদীর পানি ধীরে ধীরে বৃদ্ধি পাওয়ায় ভেঙে যাওয়া বেড়িবাঁধ দিয়ে পানি ঢুকে ইতোমধ্যে নান্দাইবাড়ি এলাকার কয়েকটি পুকুর ডুবে প্রায় পাঁচ লাখ টাকার মাছ ভেসে গেছে।

এছাড়া নদীর পানি বাড়ার সঙ্গে স্থানীয়দের মধ্যে বেড়িবাঁধ নিয়ে বাড়ছে আতঙ্ক। যে কোনো মুহূর্তে প্রবল বন্যায় ওই এলাকার বতসবাড়ি প্লাবিত হয়ে প্রতি বছরের মতো বড় ধরনের ক্ষতির আশঙ্কা করছেন স্থানীয়রা।

নওগাঁর ছোট যমুনা নদী জেলার রাণীনগর উপজেলার উপর দিয়ে বয়ে আত্রাই নদীর সঙ্গে মিলিত হয়েছে। ৮০’র দশকে রাণীনগর উপজেলার গোনা ইউনিয়ন পরিষদের তৎকালীন সময়ের চেয়ারম্যান আহাদ আলী প্রামানিক খাদ্যের বিনিময়ে কর্মসূচির আওতায় নান্দাইবাড়ি এলাকায় প্রায় সাত কিলোমিটার রাস্তা কাম বেড়িবাঁধ নির্মাণ করেন।

এরপর থেকে প্রায় ৪০ বছর ধরে বেড়িবাঁধটি সংস্কার করা হয়নি। ফলে ওই সময়ে নির্মিত বেড়িবাঁধের দুই পাশের মাটি ভেঙে বেড়িবাঁধ বেহাল দশায় পরিণত হয়েছে। প্রতি বছর ওই স্থানে বাঁধ ভেঙে রাণীনগর এবং আত্রাই এলাকার হাজার হাজার হেক্টর জমির ধানসহ বিভিন্ন ফসল ও চাষকৃত মাছ ভেসে যায়। এছাড়া শত শত বসতি ভেঙে পরে। ফলে কোটি কোটি টাকার ক্ষতির কবলে পরেন স্থানীয় বাসিন্দারা।

২০১৮ সালে বন্যায় নান্দাইবাড়ি-কৃষ্ণপুর বেড়িবাঁধ ভেঙে গেলে নওগাঁ-আত্রাই পাকা সড়কের রাণীনগর সীমানার মিরাপুর, ঘোষগ্রাম, কৃষ্ণপুরসহ প্রায় পাঁচ জায়গায় ভেঙে যায়। ওই বছরই বন্যায় রাণীনগর উপজেলার প্রায় ১৫ হাজার হেক্টর জমির ধান বন্যার পানিতে তলে যায়।

প্রতি বছর একই স্থানে ধারাবাহিকভাবে বাঁধ ভেঙে কোটি কোটি টাকার ক্ষতি হলেও নতুন করে বেড়িবাঁধ নির্মাণে কিংবা সংস্কারের উদ্যোগ নেয়নি কেউ। গত বছর একই স্থানে বাঁধ ভেঙে প্রায় সাড়ে আট হাজার হেক্টর জমির ফসল পানিতে তলিয়ে নষ্ট হয়। প্রতি বছর ভেঙে যাওয়া অংশ মেরামত করলেও গত বছরে ভেঙে যাওয়া বেড়িবাঁধ এখনো মেরামত করা হয়নি।

বর্তমানে ভারী বৃষ্টি এবং উজান থেকে নেমে আসা ঢলের পানিতে নদীর পানি দিন দিন বাড়ছে। যেকোন মুহূর্তে প্রবল বন্যায় ওই এলাকার বতসবাড়ি প্লাবিত হয়ে প্রতি বছরের মতো বড় ধরণের ক্ষতির আশঙ্কায় আতংকিত হয়ে পরেছেন স্থানীয়রা।

নান্দাই বাড়ি, মালঞ্চি এলাকার মোয়াজ্জেম হোসেন, আবু বক্কর, মোতালেব হোসেন, আজিজুল ইসলাম ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, প্রতি বছর বাঁধ ভেঙে প্রায় ৫০টি গ্রামের মানুষ পানিবন্দি হয়ে পরে। কোটি কোটি টাকার ক্ষতি হয়। আবার কিছুটা হলেও বাঁধ সংস্কার করে বসতি ও ফসল রক্ষার চেষ্টা করা হয়। কিন্তু গত বছর বাঁধ ভেঙে গেলেও এখন পর্যন্ত কেউ মেরামত করেনি। ফলে চলতি বছরে বন্যা হলে ফসলহানী ও বসতবাড়ির ব্যপক ক্ষতি হবে বলে জানান তারা।

আবু বক্কর বলেন, নদীর পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় গত সপ্তাহে ভাঙা অংশ দিয়ে পানি ঢুকে ইতোমধ্যে আমার তিনটি পুকুরসহ নান্দাইবাড়ির প্রায় আটটি পুকুরের প্রায় পাঁচ লাখ টাকার মাছ ভেসে গেছে। ফসল ও বসতি রক্ষায় দ্রুত পদক্ষেপ নিয়ে বেড়িবাঁধ মেরামতের দাবি জানিয়েছেন তারা।

এ ব্যাপারে রাণীনগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আল মামুন বলেন, বেড়িবাঁধ পরিদর্শন করেছি। এ ব্যাপারে দ্রুত পদক্ষেপ নিয়ে যেকোন মূল্যে বাঁধের ভাঙা অংশ মেরামত করার জন্য সংশ্লিষ্টদের জানিয়েছি। আশা করছি খুব শিগগির বাঁধটি মেরামত হবে।

এ ব্যাপারে নওগাঁ জেলা পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী আরিফুজ্জামান খাঁন বলেন, নান্দাইবাড়ি-কৃষ্ণপুর বেড়িবাঁধটি সংস্কারের জন্য ৩৯ লাখ টাকা ব্যয় ধরে টেন্ডার দেয়া হয়েছে। গত ২১ জুন থেকে কাজ শুরু করার কথা। কিন্তু নদীতে পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় ঠিকাদার কাজ শুরু করতে পারেনি। তবে পানি কমে যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে বাঁধটি সংস্কার করা হবে।

হামলায় জখম ছাএলীগ নেতা বিজয় মারা গেছে

হামলায় জখম ছাএলীগ নেতা বিজয় মারা গেছে



 মাসুদ রানা সিরাজগঞ্জ জেলাপ্রতিনিধি ঃ
৯দিন জীবন মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে থেকে অবশেষে মৃত্যু কাছে হেরে গেলো প্রতিপক্ষের মারপিটে আহত জেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এনামুল হক বিজয়।
সিরাজগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক প্রকৌ: আব্দুল্লাহ বিন আহম্মেদ জানান, রবিবার সকাল ১১টার দিকে লাইফ সার্পোট খুলে দেয়ার পর চিকিৎসকরা এনামুলকে মৃত্যু ঘোষণা করেন। এনামুলের মৃতদেহ সিরাজগঞ্জ পৌছার পর আজই তাকে তার গ্রামের বাড়িতে জানাযা শেষে দাফন করা হবে।
এই হত্যাকান্ডের নিন্দা জানিয়ে আব্দুল্লাহ আরও বলেন, জানাযা ও দাফন কার্যক্রম শেষ করে এ ঘটনার প্রতিবাদে আজই ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে প্রতিবাদ কর্মসূচি ঘোষনা করা হবে।
২৬ জুন বিকেলে সাবেক মন্ত্রী প্রয়াত আওয়ামীলীগ নেতা মোহাম্মদ নাসিমের স্মরণে জেলা ছাত্রলীগ আয়োজিত দোয়া মাহফিলে যোগ দিতে আসার পথে শহরের বাজার ষ্টেশন এলাকায় ছাত্রলীগ নেতা এনামুল হক বিজয়কে মাথায় কুপিয়ে জখম করা হয়। সে জেলা ছাত্রলীগের সহ-সম্পাদক ও জামতৈল সরকারী হাজী কোরপ আলী ডিগ্রি কলেজ শাখার সভাপতি এবং কামারখন্দ উপজেলার চালা শাহবাজপুর এলাকার বাসিন্দা। আহত হওয়ার পর আশংকাজনক অবস্থায় ২৭জুন ছাত্রলীগ নেতা এনামুলকে ঢাকার নিউরো সাইন্স হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখানেই আইসিইউতে রেখে তাকে চিকিৎসা দেয়া হয়। গত কয়েকদিন অধিকাংশ সময় সে অচেতন ছিল।
এ ঘটনার পর আহত ছাত্রলীগ নেতার বড় ভাই রুবেল বাদী হয়ে জেলা ছাত্রলীগের ২ সাংগঠনিক সম্পাদকসহ সংগঠনের ৫ নেতাকর্মীর নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাতনামা ৪/৫ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। ইতোমধ্যে মামলার এজাহারভুক্ত ৫জনের মধ্যে ৪জন গ্রেপ্তার হলেও প্রধান আসামী জেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক দিয়ারধানগড়ার শিহাব আহমেদ জিহাদ (২৩) এখনও পলাতক রয়েছে। গ্রেপ্তারকৃতদের মধ্যে বর্তমানে ছাত্রলীগ নেতা আশিকুর রহমান বিজয়, জাহিদুল ইসলাম ও সাগর জেলহাজতে রয়েছেন।
জামিনে মুক্ত রয়েছেন আরেক সাংগঠনিক সম্পাদক আল-আমিন। এ ঘটনার পর গত রোববার কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ মামলার ২ আসামী জেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শহরের সয়াগোবিন্দ ভাঙ্গাবাড়ি মহল্লার আল-আমিন ও আরেক সাংগঠনিক সম্পাদক শহরের দিয়ারধানগড়া মহল্লার শিহাব আহমেদ জিহাদকে দল থেকে সাময়িক বহিস্কার করেছেন।
এদিকে, এই হত্যাকান্ডের প্রতিবাদ জানিয়ে ঘটনার সাথে জড়িতদের শাস্তি দাবী করেছে আওয়ামীলীগসহ অঙ্গ-সহযোগী সংগঠনের নেতারা। এরা হলেন, জেলা আওয়ামীলীগের প্রচার সম্পাদক শামসুজ্জামান আলো, তথ্য ও গবেষনা বিষয়ক সম্পাদক ফরিদ আহম্মেদ চৌধুরী পিয়ার, যুব বিষয়ক সম্পাদক মো: বদরুল আলম, স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক ইমরুল কায়েস তপন, উপ-প্রচার সম্পাদক নাসিমুর রহমান নাসিম, জেলা যুবলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আব্দুল হাকিম, জেলা যুবলীগের সভাপতি রাশেদ ইউসুফ জুয়েল, জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সাধারণ সম্পাদক জিহাদ আল ইসলাম জিহাদ, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক নাজমুল হক, সাবেক সভাপতি আসাদুজ্জামান সোহেল, সাবেক সভাপতি জাকিরুল ইসলাম লিমন, সাবেক সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসেন ও বর্তমান সাধারণ সম্পাদক আব্দুল্লাহ বিন আহম্মেদ।
অপরদিকে, ছাত্রলীগ নেতা এনামুলের মৃত্যু সংবাদ পৌছার পর জেলা সদরে দলীয় নেতাকর্মীদের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে। যে কোন সময় বড় ধরণের অপ্রীতিকর ঘটনার আশংকা করা হচ্ছে।
এ বিষয়ে সদর থানার ওসি হাফিজুর রহমান জানান, মারপিটের ঘটনার পর থেকেই অপ্রীতিকর পরিস্থিতি এড়াতে শহরের গুরুত্বপূর্ণ স্থানসমূহে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রাখা হয়েছে। যা আজও বিদ্যমান রয়েছে।

নওগাঁয় শৈলগাছি ইউনিয়ন চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মানবন্ধন

নওগাঁয় শৈলগাছি ইউনিয়ন  চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে  মানবন্ধন




মোঃ ফিরোজ হোসাইন 
রাজশাহী ব্যুরো

: নওগাঁর সদর ১২নং শৈলগাছী ইউনিয়ন চেয়ারম্যান ও তার সন্ত্রসী বাহিনীর বিরুদ্ধে অভিযোগের প্রতিবাদে মানব বন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে এলাকাবাসী। 

রবিবার ৫ জুলাই সকাল ১০টায়  নওগাঁ সদর উপজেলা ১২ নং শৈলগাছী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ আবদুল গফুর সরদার ও তার সন্ত্রাসী বাহিনীর  বিরুদ্ধে বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগের প্রতিবাদে নওগাঁ শৈলগাছী সড়ক অবরোধ করে 
মানব বন্ধন ও সমাবেশ করে এলাকাবাসী। 
চেয়ারম্যান ও তার সন্ত্রসী বাহিনীর হাত থেকে বাঁচতে শত শত জনগণের সমাবেশ ও মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। 
এলাকা বাসী বিক্ষোভ সমাবেশে বলেন,গত ২১/০৬ /২০২০ চেয়ারম্যান আবদুল গফুর সরদার ও তার সন্ত্রাসী বাহিনী নিয়ে জবর দখল করার নামে এ তান্ডব চালায়,তারা আরো বলেন,
রামরায়পুর দিঘী সরকারের নিকট থেকে ৩ বছর ধরে লীজ নিয়ে মাছ চাষ করে আসছিল পার্শ্ববর্তী পাঠাকাটা গ্রামের মৎসজীবী সমিতির সভাপতি আবুল হোসেন গং। দিঘীর দক্ষিনপাড়ে মাছের খাদ্যের জন্য টিনের বেড়ার ঘর করে মাছের খাদ্যদ্রব্য রাখে। দিঘী ও তার চারিদিকের পাড় সরকারী সম্পত্তি। ওই সম্পত্তির উপর চেয়ারম্যানের কুনজর পড়ে। চেয়ারম্যান সরকারী সম্পত্তি গোপনে ৪লাখ টাকায় বিক্রি করে রামরায়পুর গ্রামের মজিবরের পুত্র জুয়েল, মৃত-শমসেরের পুত্র মোজাহার ও দরিয়াপুর গ্রামের মৃত জগির পুত্র সামাদের নিকট। এনিয়ে বিরোধ বাধে সমিতির সভাপতি ও চেয়ারম্যানের মধ্যে। আবুল হোসেন ঘরটি মেরামত করতে লাগলে চেয়ারম্যান গ্রাম পুলিশ দিয়ে বাধা দিলে কাজ বন্ধ রাখে। ২১জুন পুনরায় মেরামত করতে লাগলে চেয়ারম্যানের উপস্থিতিতেই তার নির্দেশে তার সন্ত্রাসী বাহিনী রামরায়পুর গ্রামের চিহ্নিত ভূমি দশ্যু আব্বাছ আলী ও তার পুত্র আনোয়ারসহ ১৫/২০জন, গুমারদহ সাহানাপাড়া গ্রামের চিহ্নিত সন্ত্রাসী হাজেরসহ তার বাহিনী ৫০/৬০ জন এবং পার্শ্ববর্তী শিকারপুর ইউনিয়নের বিলভবানীপুর গ্রামের প্রায় ৫০/৬০ লোক রামদা, হাসুয়া, লাঠি ফালা দেশীয় অস্ত্র সস্ত্র সজ্জিত হয়ে আবুলের উপর হামলা চালিযে মারপিট ভাংচুর লুটপাট করে।

এসময় আবুলের লোকজন বাধা দিলে তার লোকজনের উপর হামলা চালিয়ে পাটাকাঠা গ্রামের মৃত ইয়াছিন আলী পুত্র দেলোয়ার হোসেন (৩২), লালচাদের পুত্র শাহাদত হোনে (৪০),আমজাদের পুত্র আ: রাজ্জাক (৩৫), রামরায়পুর গ্রামের আবদুলের পুত্র ফেরদৌস (৫৫), ফেরদৌসের পুত্র সোহেল, কছিমুদ্দীনের পুত্র এজদুল (৩২) ও মাজেদুলসহ আর ১০/১২ জন গুরুতর জখম করে। ঘরগুলো তছনছ করে দেয়। আহতদের এলাকাবাসীরা উদ্ধার করে হাসপাতালে নেয়ার পথে ২য় দফায় মারধর করে নারী পুরুষকে বিবস্ত্র করে সন্ত্রাসীরা। তাদেরকে নওগাঁ হাসপাতালে ভর্তি করে দিলে তাদের মধ্যে অবস্থার অবনতি হলে রাজশাহী ও বগুড়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালো ভর্তি করে। তারা হাত পায়ে মাথায় ও ঘাড়ে মুখে গুরুতর আহত অবস্থায় এখনো চিকিৎসাধীন অবস্থায়  রয়েছে। থানায় মামলা করতে গেলে থানায় মামলা নেয় না। বরং উল্টো চেয়ারম্যান বাদী হয়ে ১৮জনকে আসামী করে আমাদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে। পরে বেলাল হোসেন বাদী হয়ে ৮জনকে আসামী করে মামলা দায়ের করে। কিন্তু পুলিশ আসামীকে না ধরে উল্টো আমাদেরকে হয়রানী করছে বলে জানান তারা। অবিলম্বে ওই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আওয়ামীলীগ নেতা আ: গফুর ও তার সন্ত্রাসী বাহিনীকে দ্রুত গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমুলক শাস্তির দাবী জানান। মোঃ মোয়াজ্জিম হোসেন, 
মোক্তারু জামান,মুর্শিদা বেগম,আবদুল মান্নান, আবদুল মালেক, বীরমুক্তিযোদ্ধা সেকেন্দার মোন্ডল, ইউপি সদস্য সেকেন্দার, ইউপি সদস্য  আতাউর রহমান,  ইউপি সদস্য  ফিরোজ হোসাইন, ভন্ডল মোন্ডল, সোহেল সহ এলাকার নারী পুরুষ এ মানববন্ধনে অংশ গ্রহন করেন।

এ ব্যাপারে ওই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি আব্দুল গফুর সরদারের জানতে চাইলে তিনি জানান আমার বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ সম্পূর্ন মিথ্যা ভিত্তিহীন উদ্দেশ্য প্রনোদিত। আমি দীর্ঘদিন থেকে ওই ইউনিয়নে সুনামের সাথে চেয়ারম্যান হয়ে এবং আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি ও সভাপতি হয়ে সততা ও নিষ্ঠার সাথে কাজ করে আসছি। আমার কাজ দেখে ঈর্শান্নিত হয়ে একটি মহল অপপ্রচার করে আসছে। আমাকে আমার ইউনিয়নবাসীর কাছে মিথ্যাভাবে হেয় প্রতিপন্ন করার জন্য প্রতিপক্ষরা এ ঘটনা ঘটিয়েছে। আমি কোন সরকারী জায়গা বিক্রি করি নাই। পাশে দিঘিরপার উচ্চ বিদ্যালয়ের স্বার্থে সভাপতি ও প্রধান শিক্ষকের অনুরোধে ওই স্থানে ঘর করলে বিদ্যালয়ের ক্ষতি হবে বলেই আমি ঘর করতে নিষেধ করি।

সদর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ সোরওয়ার্দি হোসেন জানান, দিঘীরপাড়ের সরকারী সম্পত্তি নিয়ে ঘর নিয়ে বিরোধে উভয় পক্ষই মারপিটে আহত হয়। উভয় পক্ষই মামলা দিলে মামলা রেকর্ড করি। আসামী ধরার জোর চেষ্টা চলছে, শুনেছি আজ এলাকা বাসী আবারও আজ মানববন্ধন করেছে।

সোমবার ৬৪ জেলায় স্মারকলিপি দেবে দারুল আরকাম শিক্ষক ও শিক্ষিকারা

সোমবার ৬৪ জেলায় স্মারকলিপি দেবে দারুল আরকাম শিক্ষক ও শিক্ষিকারা




নিজস্ব প্রতিবেদক:
দারুল আরকাম শিক্ষক কল্যাণ সমিতি বাংলাদেশ।আগামীকাল  ৬ জুলাই  সোমবার  দেশের ৬৪ জেলায় জেলা প্রশাসকদের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপিকা পেশ করা কর্মসূচি পালন করবে। দারুল আরকাম মাদ্রাসার প্রকল্প দ্রুত অনুমোদন প্রদান করা আসন্ন ঈদুল আজহার আগেই ৬ মাস ধরে বন্ধ থাকা বেতন ভাতা প্রদান করা পর্যাপ্ত পরিমাণ শিক্ষক দ্রুত নিয়োগ এবং বর্তমান জনবলকে নিয়মিত জনবল হিসেবে উল্লেখ করে ৬ দফা দাবিতে এই স্মারকলিপি প্রদান কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হবে। রবিবার সারাদেশে স্মারকলিপি পেশ কর্মসূচি সফল করার জন্য জেলা কমিটিসহ সকল শিক্ষকদের প্রতি আহবান জানিয়েছেন দারুল আরকাম কল্যাণ সমিতির সভাপতি মহিউদ্দিন আমিনী ও সিনিয়র সহসভাপতি দেলওয়ার হুসাইন জয়নাল আবেদীন ও মিজানুর রহমান মহাসচিব আনাস মাহমুদ সহমহাসচিব মামুন আব্দুল্লাহ ও প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক হাবিবুর রহমানসহ কেন্দ্রীয় কমিটির দায়িত্বশীলগন।

রোববার করোনায় যশোর বড় বাজারের এক ব্যবসায়ীর মৃত্যু

রোববার করোনায় যশোর বড় বাজারের এক ব্যবসায়ীর মৃত্যু



সুমন হোসেন, যশোর প্রতিনিধি। 
যশোরে করোনায় আক্রান্ত হয়ে যশোরে এক ব্যবসায়ীর মৃত্যু হয়েছে।নিহত তাপস সাহা বেজপাড়া বনানী রোডের বাসিন্দা। রোববার সকাল ৭ টায় খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়। যশেোর বড় বাজারে তাপস স্টোর নামে তার একটি মুদি দোকান আছে। নিহত তাপসের ভাই আশীষ জানান, ২৭ জুন তার শরীরে জ্বর আসে। পরে তাকে ডাক্তারের কাছে নিয়ে গেলে জ্বর কমে যায়। মঙ্গলবারথেকে প্রচন্ড শ্বাসকষ্ট শুরু হয়। পরে তাকে যশোর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানথেকে তার করোনা পরীক্ষা করা হয়।এক পর্যায় অবস্থার অবনতি হলে তাকে খুলনা মেডিকেল হাসপাতালে নেয়া হয়। রোববার সকালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।  এ বিষয়ে যশোর সিভিল সার্জন অফিসের ডাক্তার নাসিম ফেরদৌস জানান, গত শুক্রবার তাপস সাহার রিপোর্ট পজেটিভ আসে। পরে স্বাস্থ্যবিভাগ তার বাড়ি লকডাউন করে। কিন্তু সেসময় তিনি খুলনাতে ছিলেন। রোববার তার মৃত্যু হয়। এ নিয়ে যশোরে মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়ালো ১৪জনে। এদিকে, ব্যবসায়ী তাপসের মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন যশোর বড় বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি মীর মোশারফ হোসেন বাবু। বাড়িটি এখন লকডাউন করে রাখা হয়েছে।

কুড়িগ্রামে বন্যার প্রভাবে সবজির দাম বেড়েই চলেছে

কুড়িগ্রামে বন্যার প্রভাবে সবজির দাম বেড়েই চলেছে




কৃষ্ণ সরকার পীযূষ, ভ্রাম্যমাণ প্রতিনিধিঃ

কুড়িগ্রামে কয়েকদিন ধরে অতিবৃষ্টি আর বন্যার প্রভাব পড়েছে কাঁচাবাজারে। হঠাৎ করেই বেড়েছে কাঁচামরিচ, করলা, পটল, বেগুন  ও শসাসহ বিভিন্ন সবজির দাম।

যদি ও বেড়ে গেছে সবজির দাম কিন্তু কমে গেছে মাছ,  দেশী মুরগী ও বয়লার মুরগীর দাম।
'সরবরাহ কম থাকায় বৃদ্ধি পেয়েছে সবজির অার সরবরাহ বেশী হওয়ায় কমে গেছে মাছ, দেশী মুরগী ও বয়লার মুরগীর দাম বলে জানিয়েছেন বিক্রেতারা।

রবিবার  (৫ জুলাই) কুড়িগ্রামের আর্দশ জিয়া বাজার ও আর্দশ পৌরবাজার কাঁচাবাজারে সরজমিনে ঘুরে এখন চিত্র দেখা গেছে।
বাজারে প্রতি কেজি সবজিতে দাম বেড়েছে ১০-২৫ টাকা। এ ছাড়া রসুন, আদা ও মাংসসহ অন্যান্য পণ্যের দামে তেমন পরিবর্তন হয়নি।

বর্তমানে প্রতি কেজি পটল ৪০ টাকা, বেগুন প্রতি কেজি ৪০ টাকা, ঢেঁড়শ প্রতি কেজি ৪০, বরবটি প্রতি কেজি ৫০ টাকা, সশা প্রতি কেজি ৩০ টাকা, কচুঁ প্রতি কেজি ৬০ টাকা, করলা প্রতি কেজি ৬০ টাকা, কচুর ফুল প্রতি অাটি ১৫ টাকা, শাকপুতি প্রতি কেজি ৪০ টাকা মিষ্টি কুমড়া ২০- ২৫ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।
পাইকারি আড়ত জিয়াবাজার ঘুরে দেখা যায়, অন্য সময়ের তুলনায় আড়তে মরিচ কিছুটা কম। এই বাজারে পাইকারিতে কাঁচামরিচের দাম সপ্তাহের ব্যবধানে তিনগুণ বেড়েছে।
মরিচ বিক্রেতা মো. গফুর আলী বলেন, এখন প্রতি কেজি কাঁচামরিচ বিক্রি হচ্ছে ১০০-১২০ টাকায়, যা এক সপ্তাহ আগে ছিল ৪০ থেকে ৫০ টাকা। অতিবৃষ্টির কারণে মরিচ ঝরে যাওয়ায় বাজারে এখন মরিচ কম আসছে। এ কারণে বাড়তি দামে বিক্রি হচ্ছে।

সবজি বিক্রেতারা বলেন, কুড়িগ্রামের বিভিন্ন অঞ্চলে বন্যা ও টানা বৃষ্টির কারণে সবজির দাম বাড়ছে। বন্যার কারণে কাঁচামরিচ ও সবজির সরবরাহ কম থাকায় দাম বেড়ে যাচ্ছে। বন্যার প্রভাবে কাঁচাবাজারে পণ্যের দাম বাড়তে থাকবে।

তবে ক্রেতারা অভিযোগ করেন, একই সময় কয়েক জেলায় বন্যা থাকার অজুহাত দেখিয়ে কাঁচামরিচ ও সবজির দাম বাড়িয়ে দিয়েছেন ব্যবসায়ীরা। এতে বাজারের খরচ বেড়ে গেছে অনেক।

জলঢাকায় নন এমপিও শিক্ষকদের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর প্রনোদনার চেক বিতরণ

জলঢাকায় নন এমপিও শিক্ষকদের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর প্রনোদনার চেক বিতরণ





মোঃ হাবিবুর রহমান শাকিল ডিমলা নীলফামারী প্রতিনিধি:



 নীলফামারীর জলঢাকা উপজেলায় বৈশ্বিক মহামারি করোনা ভাইরাসের কারনে আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের নন-এমপিও শিক্ষক-কর্মচারিদের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর আর্থিক অনুদানের চেক বিতরন করা হয়েছে। আজ রবিবার (৫ জুলাই) দুপুরে উপজেলা পরিষদ হলরুমে ৩শত ৩৩ জন শিক্ষক কর্মচারির হাতে এই চেক তুলে দেন স্থানীয় সংসদ সদস্য মেজর (অব) রানা মোহাম্মদ সোহেল। 

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাহবুব হাসানের সভাপতিত্বে এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আব্দুল ওয়াহেদ বাহাদুর, উপজেলা আ'লীগের সাধারন সম্পাদক সহীদ হোসেন রুবেল, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা শাহ মাহফুজুল হক প্রমুখ। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার চঞ্চল কুমার ভৌমিক। উপজেলার ২ শত ৬৪ জন শিক্ষক ও ৬৯ জন কর্মচারির মাঝে ১৪ লাখ ৯২ হাজার ৫ শত টাকা বিতরন করা হয়। 

প্রত্যক শিক্ষককে ৫ হাজার ও প্রতি কর্মচারিকে ২ হাজার ৫ শত করে টাকা প্রদান করা হয়। এসময় উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাহবুব হাসান বলেন, করোনা মহামারিতে দেশের মানুষের পাশে থেকে বর্তমান সরকার সবধরনের সহযোগিতা করে যাচ্ছে। উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে অনুষ্ঠানে সরকারি কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধি, শিক্ষক কর্মচারি ও সাংবাদিকগন উপস্থিত ছিলেন।

আশাশুনিতে ভুয়া মৎস্যজীবির দরপত্র বাতিলঃঅবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদে নায়েবের প্রতিবেদন

আশাশুনিতে ভুয়া মৎস্যজীবির দরপত্র বাতিলঃঅবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদে নায়েবের প্রতিবেদন




আহসান উল্লাহ বাবলু, আশাশুনি ( সাতক্ষীরা) প্রতিনিধি  : আশাশুনিতে ভুয়া মৎস্যজীবী সমিতির দরপত্র বাতিল ও অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদে নায়েবের প্রতিবেদন। আশাশুনির বড়দল ইউনিয়নে ভুয়া মৎস্যজীবি (জেলে) সেজে প্রকৃত মৎস্য জীবিদের সাথে প্রতারণা ও অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের দাবীতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হওয়ায় ও তাহা পত্র পত্রিকায় প্রকাশিত হওয়ার গাত্র দাহ শুরু, প্রশাসনের বিভিন্ন মহলে দৌড়ও ঝাপ শুরু করে ইউপি সদস্য নীলকন্ঠ গংরা । একদিকে নিজের অবৈধস্থাপনা রক্ষা এবং সাব লিজের  মাধ্যমে জলমহালের শ্রেণী পরিবর্তন করে সরকারি রাজস্ব ফাঁকি দিয়ে অবৈধভাবে লক্ষ লক্ষ টাকা উপার্জন করতে অপর দিকে ভুয়া মৎস্যজীবি সমবায় সমিতির অনুকুলে ধাড়িয়াখালী খাল জলমহালের ইজারা নেওয়ার জন্য জনপ্রতিনিধি, রাজনৈতিক নেতা থেকে শুরু করে প্রশাসনের সর্বমহলে দৌড়ে বেড়াচ্ছেন ইউপি সদস্য নীলকন্ঠ গাইন ও তার অনুসারিরা। সরেজমিনে ঘুরে ও বড়দল ইউনিয়ন ভুমি সহকারি কর্মকর্তার এক প্রতিবেদন সূত্রে দেখা যায় উক্ত ইউপি সদস্য নীলকন্ঠ গাইন ধাড়িয়াখালী ও হেতাইলবুনিয়া জলমহাল যার মৌজা ফকরাবাদ জেএল নং-৯৮ খতিয়ান নং ০১, দাগে ৯৩৪ দাগে ০৬শতক খাল ভরাট করে পাকা বাড়ী নির্মাণ করে বসবাস করে যাচ্ছেন। যাহা সম্পুন্ন সরকারি নীতিমালা পরিপন্থি। তার অন্যান্য অনুসারিরা রনজিৎ গাইন, রনজিদ হালদার, পরিমল সরদার, দীপক গাইন, বিশ্বজিত গাইন, মহাদেব গাইন, বিধান মন্ডল, চিত্ত মন্ডলসহ আরও অনেকেই উক্ত খাল ভরাট করে শ্রেণী পরবতন করে পাকা বাড়ী, রাইচমিল, ক্ষেত, কাচা পাড়ি, পুকুর ইত্যাতি তৈরী করে নীলকন্ঠকে বার্ষিক হারে টাকা দিয়ে ভোগ দখল করে যাচ্ছেন বলে স্থানীয় জানান। এসকল অবৈধ স্থাপনা ও ভুয়া মৎস্যজীবি (জেলে) সমিতি হেতাইবুনিয়া মৎস্যজীবি সমবায় সমিতি নিবন্ধন বাতিলের দাবিতে বিগত ৩০জুন মানবন্ধন করলে গাত্রদাহ শুরু হয় সরকারি খাস জমি জবদখলকারি ইউপি সদস্য ও তার অনুসারিদের বিরুদ্ধে। তথ্যানুসন্ধানে জানা যায় ২০০৯ সালে উক্ত নিলকন্ঠ গংরা অবৈধভাবে ধাড়িয়াখালী ও হেতাইলবুনিয়া খাল জলমহাল দখল করে রাখলে তদককালিন উপজেলা নির্বাহী অফিসার ১৬/০৮/২০০৯ তারিখের উ:নি:অ/আশা/৯-১/০১-৭৭২(৩) স্বারকের তার বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা জারি করেন। কিন্তু উক্ত মামলাবাজ হেতাইলবুনিয়া যুব সমবায় সমিতি সম্পাদক ইউপি সদস্য নীলকন্ঠ গাইন ২০/০৮/০৯ তারিখে আশাশাশুনি উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে বিবাদী করে বিজ্ঞ অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) আদালাতে ৮৯/০৯ (খাস) নং মিস মামলা দায়ের করেন। তদসময় গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার শুধুমাত্র প্রকৃত মৎস্যজীবিদের সমিতির মধ্য ইজারা দেওয়ার জন্য ঘোষনা করেন। পরবর্তীতে ২০১১ সালের দিকে প্রশাসনের চোখ ফাকি দিয়ে মৎস্যজীবি না হয়েও ভুয়া মৎস্যজীবি সেজে হেতাইলবুনিয়া মৎস্যজীবি সমবায় সমিতি গঠন নিবন্ধন করেন। কিন্তু গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের ভুমি মন্ত্রণালয়ের শাখা ৭ এর ২৩ জুন ২০০৯ তারিখের প্রকাশিত সরকারি জলমহাল ব্যবস্থাপনা নীতি বর্হিভুত যাহার স্বাক্ষর নং ভু:ম:/শা-৭বিবিধ (জল) ০২/২০০৯-১৯১ এর ২(খ)ও ৫এর ধারা অনুসারে নীলকন্ঠ গাইন গংরা যোগ্য নহে।   যার ২. এর ক) প্রকৃত মৎস্যজীবি, মৎস্যজীবি সংগঠনের, জলমহাল এর সংজ্ঞা: ক) যিনি প্রাকৃতিক উৎস হতে মাছ শিকার এবং বিক্রয় করেই প্রধানত: জীবিকা নির্বাহ করেন তিনি প্রকৃত মৎস্যজীবি বলে গণ্য হবেন। এবং (খ) অনুচ্ছেদে বলা হয়েছে তবে কোন সমিতিতে যদি একমন কোন সদস্য থাকেন যিনি প্রকৃত মৎস্যজীবি নহেন তবে সে সমিতি কোন জলমহাল বন্দোবস্ত পাওয়ার যোগ্য হবে না। যাহা সরকারি নীতিমালা সুষ্পষ্ট লঙ্ঘন করেছে বলে প্রতিয়মান। সুতরাং সরকারি নীতিমালা লংঘন করা ও সরকারি সম্পদ অবৈধভাবে দখল করায় প্রশাসনের নিকট হেতালবুনিয়া মৎস্যজীবি সমবায় সমিতির নিবন্ধন এবং জলমহালের দরপত্র  বাতিলের দাবি জানিয়েছেন এলাকাবাসী।

চুয়াডাঙ্গা জেলা ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ কর্মকর্তাদের অভিযান

চুয়াডাঙ্গা জেলা ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ কর্মকর্তাদের অভিযান




মোঃ কাউসার আলী
চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি

ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মহোদয়ের সার্বিক নির্দেশনা ও জেলা প্রশাসক মহোদয়ের তত্ত্বাবধানে চুয়াডাঙ্গা জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালকের নেতৃত্ত্বে সদর উপজেলার বড়বাজার,নিউমার্কেট ও দৌলতদিয়াড় এলাকায় অভিযান পরিচালনা করা হয় আজ ৫ জুলাই বেলা ১২ টার দিকে।
এ সময় পণ্যের মোড়কীকরণ বিধি বহির্ভূত পণ্য ও নির্ধারিত মূল্যের অতিরিক্ত মূল্যে পণ্য বিক্রয়ের অপরাধে ভোক্তা সংরক্ষণ আইন ২০০৯ এর ৩৭ ও ৪০ ধারায় মেসার্স রতন ডিপার্টমেন্টাল স্টোরকে ১৮০০০ টাকা, মেসার্স সিটি মার্বেলকে অভিযোগের প্রেক্ষিতে মূল্য বেশি রাখার অপরাধে ৪০ ধারায় ৪০০০ টাকা এবং মেসার্স উজ্জ্বল অধিকারিকে  বিক্রয় মূল্যের সাথে মূল্য তালিকার মিল না থাকায় ১০০০ টাকা জরিমানা করা হয়।
এ সময় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ কর্মকর্তারা বলেন ভোক্তাদের অধিকার সংরক্ষণের জন্য এ অভিযান অব্যাহত থাকবে।

কুষ্টিয়ায় মুজিববর্ষ উপলক্ষে ছাত্রলীগের বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি

কুষ্টিয়ায় মুজিববর্ষ উপলক্ষে  ছাত্রলীগের  বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি




কুষ্টিয়া প্রতিনিধি। 


কুষ্টিয়ায় মুজিববর্ষ উপলক্ষে  বৃক্ষরোপন কর্মসূচি পালন করেন কুষ্টিয়া জেলা ছাত্রলীগ।


মুজিববর্ষের আহবান ৩ টি করে গাছ লাগান। 
এই স্লোগান কে সামনে রেখে। 
মানবতার জননী জননেতৃ দেশরত্ন  শেখ হাসিনার নির্দেশে জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের ৩ মাস ব্যাপী বৃক্ষরোপন কর্মসূচির অংশ হিসেবে কুষ্টিয়া জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ইয়াসির আরাফাত তুষারের নির্দেশে ও সহযোগিতায় কুষ্টিয়ায় 
বনজ,ভেষজ,ও ফলজ গাছের চারা রোপন করে এই ছাত্রলীগ নেতারা। 

এসময় উপস্থিত ছিলেন 
রাকিবুল ইসলাম রাকিব (সাংগঠনিক সম্পাদক, কুষ্টিয়া জেলা ছাত্রলীগ)
জাহিদ হাসান পাপ্পু (যুগ্ম আহবায়ক, কুষ্টিয়া শহর ছাত্রলীগ।) 
চয়ন,( যুগ্ম আহবায়ক, কুষ্টিয়া শহর ছাত্রলীগ,)
আলম( যুগ্ম আহবায়ক কুষ্টিয়া শহর ছাত্রলীগ।)
 ধ্রুব, (সদস্য কুষ্টিয়া  শহর ছাত্রলীগ।) 
নয়ন (যুগ্ন সাধারন সম্পাদক ইসলামিয়া কলেজ ছাত্রলীগ।)
সহ আরও অনেকে। 


এছাড়াও এই ছাত্রলীগ নেতারা এসময় আরও বলেন। 
দেশরত্ন শেখ হাসিনার আহ্বানে সাড়া দিয়ে জলবায়ুর পরিবর্তন রোধে আসুন আমরা প্রত্যেকে অন্তত একটি করে বনজ,ভেষজ ও ফলজ মোট অন্তত তিনটি গাছ রোপন করি।

ওদের দাপটে ঘরছাড়া ফটিকের পরিবার সিংড়ার বুড়িকদমা গ্রামে একঘরে ৪টি পরিবার

ওদের দাপটে ঘরছাড়া ফটিকের পরিবার  সিংড়ার বুড়িকদমা গ্রামে একঘরে ৪টি পরিবার




রাজু আহমেদ, নাটোর: 
নাটোরের সিংড়া উপজেলার ইটালী ইউনিয়নের বুড়িকদমা গ্রামে দীর্ঘ দিন থেকে একঘরে করে রাখা হয়েছে ৪ টি পরিবারকে। 
তাদের সাথে গ্রামের লোকজনের কথা বলতে নিষেধ, কথা বললে ৫শ টাকা জরিমানা গুনতে হবে।
অপরদিকে মসজিদে নামাজ পড়তে নিষেধ থাকায় তারা গ্রামে নামাজ পড়তে পারে না।
জুমআর নামাজ পড়তে যেতে হয় অন্যগ্রামের মসজিদে। 

এদিকে ইতোমধ্যে গ্রাম্য মাতব্বরদের অত্যাচারে ঘর ছেড়েছে ফটিকের পরিবার।  স্ত্রী, সন্তান ও শাশুড়িকে নিয়ে ঐ পরিবার পার্শ্ববর্তী খোলাবাড়িয়া গ্রামে আশ্রয় নিয়েছে। 

জানা যায়, প্রায় ৮ মাস আগে ঐ গ্রামে পীরস্থানের জমি দখলসহ বাড়ি করে জিল্লুর রহমান নামে এক ব্যক্তি। এসময় মান্নান পক্ষ মাদ্রাসা নির্মানের প্রস্তাব দিলে শুরু হয় বিরোধ। ঐ ব্যক্তির কাছ থেকে উৎকোচ নিয়ে তাকে বসবাসের সুযোগ দেয়ার অভিযোগ উঠেছে। প্রতিপক্ষ তাঁকে বসবাসের সুযোগ দেয়া নিয়ে শুরু হয় বিরোধ। 

  মান্নান ও তাঁর ভাইদের কোণঠাসা করার জন্য রাতারাতি গ্রামের কিছু মাতব্বর একজোট হয়। পরবর্তীতে মান্নানের বাড়ির পাশে তাদের ভোগদখলকৃত ২০ শতক জমিতে ঈদগাহ মাঠ নির্মাণের প্রস্তাব দেয় মাতব্বররা।  তারা দিতে অস্বীকৃতি জানালে রাতের আধারে মান্নানের দখলকৃত জমির সকল গাছপালা, সবজি বাগান বিনষ্ট করা হয়। 
বিষয়টি এসপি সার্কেল জামিল আক্তার ও  সিংড়া থানার ওসি নুরে আলম সিদ্দীক কে অবহিত করে মান্নান ও তাঁর ভাইয়েরা।  
এর পর ইউপি চেয়ারম্যান আরিফুল ইসলাম সহ দু'পক্ষকে নিয়ে শালিসে ঈদগাহ মাঠ ছেড়ে দেয়ার প্রস্তাব দেয়া হয়। বিনিময়ে মান্নান ও তাঁর ভাইদের মাটিভরাট ও গাছের ক্ষতিপূরণ বাবদ ৭৫ হাজার টাকা দেয়া হয়। এরপর থেকেই মান্নান ও তাঁর পরিবারদের এলাকা থেকে বিতাড়িত করার লক্ষ্যে একঘরে করে রাখে মাতব্বররা।  সম্প্রতি ঐ জায়গায় মান্নানের ভাই মোস্ত তাল পারা বারণ করায় অপর ভাই মোতালেবকে রনির নেতৃত্বে মারপিট ও তাঁর কাছে থাকা নগদ টাকা ছিনিয়ে নেয়া হয়। সিংড়া থানায় মোতালেব এর স্ত্রী বাদী হয়ে মামলা করলে পুলিশ রনিসহ তিনজনকে আটক করে।

সরেজমিনে গিয়ে খোঁজ নিয়ে জানা  যায়,
ঐ গ্রামে রয়েছে ঈদগাহ, কবরস্থান ও ১ টি মসজিদ। কবরস্থানের পাশেই ঈদগাহ মাঠে ৪ ঈদে নামাজ পড়া হয়। ঈদগাহ মাঠ থাকা সত্বেও এলাকার মাতব্বর রেজাউল, আব্দুর রশিদ, আনিসুর, হাবিল, হামিদুল,রশিদ,আনসার ও রনির নেতৃত্বে দল গঠন করে কোণঠাসা করার জন্য মান্নানের বাড়ির সাথে ঈদগাহ মাঠ করা হয়েছে।  কোণঠাসা করা হয়েছে মান্নান, তাঁর ভাই মোস্তফা, মোতালেব ও মহব্বতকে।  তাদের সাথে গ্রামের কাউকে কথা বলতে দেয়া হয় না। কথা বললে ৫০০ টাকা জরিমানার নির্দেশ রয়েছে। মান্নান ও তাঁর পরিবারের ছেলে মেয়েদের সাথে খেলতে বারন করা রয়েছে।
খোঁজ নিয়ে আরো জানা যায়, কিছুদিন আগে মান্নান ও তাঁর ভাইকে গ্রাম ছাড়া করার পরিকল্পনা মোতাবেক তাদের ভূমিদস্যু আখ্যা দিয়ে মানববন্ধন করে প্রতিপক্ষ গ্রুপ। অথচ গ্রামের ২১ বিঘা খাসজমি প্রতিপক্ষ ঐ গ্রুপের কিছু লোকজন ভোগদখল করে আসছে। 

আব্দুল মান্নান  জানান, আমরা ৪ ভাই। এখানে আমরা আদি বসবাস। আমার বাবা একজন সাধারণ কৃষক ছিলেন। বাড়ির পাশে মসজিদে আমরা দু শতক জমি দান করে মসজিদ নির্মান করেছি।
 সম্প্রতি পীরস্থানের জমি তে মাদ্রাসা করার পরিকল্পনা ছিলো আমাদের। কিন্তু গ্রামের কয়েকজন মিলিত হয়ে সেখানে একজনকে বসতবাড়ি করতে সহযোগিতা করেছে।  আমরা প্রতিবাদ করায় গ্রামের কিছু মানুষ একজোট হয়।  বর্তমানে তাদের একঘরে করে রাখা হয়েছে। গ্রামের সকল কার্যক্রম থেকে বিরত রাখা হয়েছে। মুলত আমাদের গ্রামছাড়া করতে মরিয়া ঐ পক্ষ।
তিনি আরো বলেন, আমরা আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল, সে কারনে শান্তিপূর্ণ ভাবে বসবাস করে যাচ্ছি। তারা আমাদের যে কোন সময় প্রাণনাশ করতে চায়। আমরা আইনের মাধ্যমে সুষ্ঠু সমাধান চাই। কারন আমরা কোনো অন্যায় করিনি।  

 প্রতিবেশি জাহিদুল ইসলাম জানান, আব্দুল মান্নান ও তাঁর ভাইয়েরা খেটে খাওয়া মানুষ।  তাদের কে অন্যায়, জুলুম করা হচ্ছে।  আমি সত্য কথা বলায় আমার বাড়ির সামনে বেড়া দেয়া হয়েছে। আমার যাতায়াতে বাঁধা সৃষ্টি করা হয়েছে। আমাকে অকট্য ভাষায় গালিগালাজ করা হয়। 

গ্রাম থেকে বিতারিত ফটিক বলেন, আমি নিরুপায় হয়ে গ্রাম ছাড়তে বাধ্য হয়েছি। মান্নানের পক্ষ নেয়ায় আমাকে মারার হুমকি দেয়া হয়েছে। রাস্তাঘাটে অকট্য ভাষা বলা গালিগালাজ করা হয়। খুন জখমের হুমকি দেয়া হয়। রাতে দরজা, জানালায় এসে হুমকি দেয়া হয়। আমার তিন মেয়ে। একটি মেয়ে অনার্স ইংরেজি তে পড়ালেখা করে। তার ভবিষ্যৎ ভেবে গ্রাম ছেড়ে চলে এসেছি। আমার ভাইয়ের বাসা খোলাবাড়িয়ায় আশ্রয় নিয়েছি। 

স্থানীয় ইউপি সদস্য আবুল কালাম আজাদ সত্যটা নিশ্চিত করে জানান, মান্নান ও তাদের পরিবারকে একঘরে করে রেখেছে স্থানীয় কিছু ব্যক্তি। 
ফটিক গ্রাম ছেড়েছে, সে একজন নিরীহ মানুষ। 

এ বিষয়ে স্থানীয় ইটালী ইউপি চেয়ারম্যান আরিফুল ইসলাম আরিফ জানান, তাদের একঘরে করে রাখার বিষয়টি আমি কখনো শুনিনি।  তবে এর সত্যটা পাওয়া গেলে বিষয়টি সুরাহা করার জন্য আমি চেষ্টা করবো। 

সিংড়া থানার ওসি নুরে আলম সিদ্দীকি জানান, একঘরে করার বিষয়টি আমার জানা ছিলো না। এর আগে এ বিষয়ে মামলা হয়েছিলো, পুলিশ আসামীদের আটক করে জেলহাজতে প্রেরণ করেছে। একঘরে করে মৌলিক অধিকার হরন করা হয় তবে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ছবি: ১ম জাহিদুলের বাড়ির সামনে বেড়া
২য় ঈদগাহ মাঠ
৩য় একঘরে পরিবার। 

দিনাজপুর বাহাদুর বাজার এনএ মার্কেটের জায়গা দখলের মহোৎসব

দিনাজপুর বাহাদুর বাজার এনএ মার্কেটের জায়গা দখলের মহোৎসব




দিনাজপুর প্রতিনিধি॥ দিনাজপুর বাহাদুর বাজার এন,এ মার্কেটের জায়গা দখলের মহোৎসব শুরু হয়েছে। এমনকি ময়লা ফেলার ডাষ্টবিন, শৌচাগারের ট্যাংকির উপরের জায়গাতেও তৈরী করা হচ্ছে দোকান ঘর। এভাবে মার্কেটের জায়গা দখল হয়ে গেলেও দেখার বা বলার কেউ নেই। একটি প্রভাবশালী চক্রের ইন্ধনে চলছে এ দখল মহোৎসব। সরেজমিনে দেখা যায় বাহাদুর বাজার-গোলকুঠী সড়কের মা মার্কেটের সামনে একটি শৌচাগারের ট্যাংকির উপরের স্লাবের উপর নির্মন করা হয়েছে দোকানঘর। এছাড়া ওই শৌচাগারের জায়গা পূর্বেই দখল করা হয়েছে। শৌচাগারের পার্শ্ববর্তী ড্রেনের উপর স্লাববসিয়েও নির্মাণ করা হয়েছে দোকান ঘর। শুধু তাই নয়, সেটা রীতিমত চড়া মূল্যে বিক্রিও করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। জানা যায়, ওই দোকান ঘর বিক্রি করেছে জনৈক আরশাদ আলী ডিটক। আর তার কাছে ক্রয় করেছে রুবেলসহ অন্যান্য আরো কয়েকজন আড়ৎদার। বিষয়টি নিয়ে এলাকায় গুঞ্জন শুরু হয়েছে। মার্কেটের সাধারণ ব্যবসায়ীদের দাবী অবিলম্বে বিষয়টি তদন্ত করে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হোক। এব্যাপারে জেলা প্রশাসকসহ সংশ্লিষ্টদের আশু হস্তক্ষেপ একান্ত প্রয়োজন।

কিশোরগঞ্জে ৩ বছরের শিশুসহ নতুন ৫ ব্যক্তি করোনায় আক্রান্ত

কিশোরগঞ্জে  ৩ বছরের শিশুসহ নতুন ৫ ব্যক্তি করোনায় আক্রান্ত





মো:লাতিফুল  আজম
কিশোরগঞ্জ  নীলফামারী প্রতিনিধি:


নীলফামারীর কিশোরগঞ্জে এক শিশুসহ ৫ জনের নতুন করে করোনায় আক্রান্ত । শনিবার রাত ১১ টায় উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ আবু শফি মাহমুদ এ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। এ পর্যন্ত উপজেলায় করোনা পজেটিভের সংখ্যা দাড়ালো ৩৪ জনে। আক্রান্তদের বাড়ীসহ ১০ টি বাড়ি লকডাউন করা হয়েছে।

উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ জানায়- রাজশাহী উন্নয়ন কৃষি ব্যাংকের গাড়াগ্রাম টেপার হাট শাখার এক কর্মকর্তার করোনা পজেটিভ হওয়ায় তার পরিবারের সদস্যদের নমুনা ২৮ জুন সংগ্রহ করে ঢাকায় পাঠানো হয়। ওই ব্যাংক কর্মকর্তার ৩ বছরের শিশুটির আজ (শনিবার) করোনা পজেটিভ ফলাফল আসে। একই তারিখে স্থানীয় বেসরকারি মা ও শিশু ল্যাবের কর্মচারীর নমুনার ফলাফলও পজেটিভ এসেছে। এছাড়া উপজেলা পরিবার পরিকল্পপনা বিভাগের স্টোর কিপারের নমুনার ফলাফলও পজেটিভ আসে। এদিকে গাড়াগ্রাম পাটোয়ারী পাড়া গ্রামের এক যুবক ও বড়ভিটা উত্তরপাড়া গ্রামের এক ব্যাংক কর্মকর্তার করোনা শনাক্ত হয়েছে। নতুন এ ৫ জনসহ উপজেলায় করোনা শনাক্তের সংখ্যা দাড়ালো ৩৪ জনে।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ আবু সফি মাহমুদ নতুন ৫ জন করোনা শনাক্তের বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান- তাদের সকলকে আইসোলেশনের ব্যবস্থা করা হয়েছে। এদের পার্শ্ববতী ১০ টি বাড়ির লোকজনকে লকডাউন করা হয়েছে।

চৌগাছায় ফ্রি চিকিৎসা সেবা প্রদানের উদ্বোধন করেন - এমপি নাসির

চৌগাছায় ফ্রি চিকিৎসা সেবা প্রদানের উদ্বোধন করেন - এমপি নাসির




মোঃ ইকরামুল করিম সৈকত, 

চলমান করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে যশোরের চৌগাছায় বাংলাদেশ সেনাবাহিনী কর্তৃক  ধারাবাহিক ফ্রি চিকিৎসা প্রদানের আওতায় আজ ৫ জুলাই রবিবার   চৌগাছা সরকারি ডিগ্রী কলেজে চিকিৎসা সেবা প্রদানের শুভ উদ্ধোধন করেন যশোর-২ (চৌগাছা-ঝিকরগাছা) আসনের মাননীয় জাতীয় সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা মেজর জেনারেল (অবঃ) অধ্যাপক ডাঃ মোঃ নাসির উদ্দিন।

উক্ত উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন চৌগাছা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোস্তানিছুর রহমান, উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা জাহিদুল ইসলাম, বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর কর্মরত সকল সদস্য ও চিকিৎসকগণ প্রমুখ।

চিকিৎসার পাশাপাশি করোনার বিরুদ্ধে মাঠে নেমেছে করোনা যোদ্ধা দিনাজপুরের চিকিৎসকরা

চিকিৎসার পাশাপাশি করোনার বিরুদ্ধে মাঠে নেমেছে করোনা যোদ্ধা দিনাজপুরের চিকিৎসকরা




দিনাজপুর প্রতিনিধি ॥ চিকিৎসার পাশাপাশি করোনার বিরুদ্ধে মাঠে নেমেছে করোনা যোদ্ধা দিনাজপুরের চিকিৎসকরা। সর্বস্তরের মানুষদের সতর্ক করছেন তারা। জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম এমপির সহযোগিতায় করোনা ভাইরাস (কোভিড-১৯) মোকাবেলায় এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ দিনাজপুর এর উদ্যোগে জনগনকে স্বাস্থ্যবিধির বিষয়গুলো অবগত ও উদ্বুদ্ধ করন কর্মসুচী পালন করা হয়েছে। 
৫ জুলাই রবিবার এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মোড় প্রাঙ্গনে এ সচেতনতামুলক বিভিন্ন কর্মসুচী পালন করা হয়। এ ছাড়া সচেতনতামুলক লিফলেট, মাস্ক বিতরন করা হয়। এ সময় সচেতনমুলক বক্তব্য রাখেন দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডাঃ শিবেস সরকার, উপাধ্যক্ষ ডাঃ নাদির হোসেন, সাবেক অধ্যক্ষ ডাঃ কান্তা রায় রিমি, কলেজের সহযোগি অধ্যাপক ডাঃ নুরুজ্জামানসহ ডাঃ শেখ ফরিদ আহমেদ, ডাঃ জিল্লুর, ডাঃ মশিউর রহমান, ডাঃ জাহানারা বেগম মুন্নি, ডাঃ মাসতুরা, ডাঃ ইশরাত শারমিন, ডাঃ আজিজ আহমেদ, ডাঃ মেহেরুন নাহার, ডাঃ জোবায়দা গুলশান আরা সুইটি, ডাঃ হাবিবুল বুল, ডাঃ নুরুল ইসলাম, ডাঃ সাচি, ডাঃ ইসমাইল হোসেন, ডাঃ মোরশেদ, ডাঃ ওয়ালি আহাদ, ডাঃ মোস্তফা জামান, ইন্টার্নি ডক্টর এসোসিয়েশনের সেক্রেটারী ডাঃ শাহাদাত হোসেন।  এ ছাড়া উপস্থিত ছিলেন অন্যান্য চিকিৎসক ও কলেজের কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ। 
বক্তারা বলেন, সারাবিশ্ব জুড়ে প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়েছে। বাংলাদেশেও আশংকা মুক্ত নয়। যেহেতু এখন পর্যন্ত এই রোগের প্রতিষেধক এবং পরীক্ষিত কোন চিকিৎসা আবিস্কার হয়নি। তাই স্বাস্থ্যবিধি মেনে নিজের জীবনকে সচল রাখতে হবে। করোনা ভাইরাসের লক্ষন দেখা দিলে অতি দ্রুত চিকিৎসকের পরামর্শ গ্রহন করতে হবে। এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজে করোনা ভাইরাস শনাক্তের জন্য দ্রুত পিসি মেশিন স্থাপন করায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম এমপির প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে বলেন, হুইপ ইকবালুর রহিম এমপির প্রচেষ্টায় এই এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে করোনা রোগীদের চিকিৎসার কোন কমতি নেই। শুধু করোনা রোগী নয় সকল ধরনের চিকিৎসা সেবা পাওয়া যায়। আর আমাদের বাহিরে যেতে হয় না। বক্তারা করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় সকলকে সচেতন হওয়ার আহবান জানান।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের মানুষকে অদৃশ্য করোনা ভাইরাস থেকে রক্ষা করতে প্রাণপণ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের মানুষকে অদৃশ্য করোনা ভাইরাস  থেকে রক্ষা করতে প্রাণপণ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন




দিনাজপুর প্রতিনিধি ॥ সারা বিশ্বে অদৃশ্য করোনা ভাইরাস এক আতঙ্কের নাম। আতঙ্কিত না হয়ে সকলেরই প্রয়োজন সচেতন হওয়ার। সচেতনতার অভাবেই সারা বিশ্বে আজ অদৃশ্য শক্তি করোনায় আক্রান্ত হচ্ছে লাখ লাখ মানুষ। আমাদের দেশেও করোনা ভাইরাসের আক্রান্তের সংখ্যা দিন দিন বেড়েই চলেছে। শহর থেকে প্রত্যন্ত গ্রামেও হানা দিয়েছে এই অদৃশ্য শক্তি। এই পরিস্থিতিতে মানুষের উদ্বেগ উৎকন্ঠার সীমা নেই। সবাই দুশ্চিন্তায় দিনাতিপাত করছেন। আতঙ্ক এবং দুশ্চিন্তা করোনা ভাইরাস থেকে রক্ষার কোন সমাধান নয়। এই মহামারী থেকে রক্ষার একটি পথ আমাদের সকলকেই সচেতন হয়ে সরকারের দেয়া স্বাস্থ্য বিধি অবশ্যই মেনে চলতে হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের মানুষকে অদৃশ্য করোনা ভাইরাস থেকে রক্ষা করতে প্রাণ পণ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। 
০৫ জুলাই রোববার দিনাজপুর সদর উপজেলার ৯নং আস্করপুর ইউনিয়ন পরিষদে ২০১৯-২০২০ অর্থ বছরের এলজিএসপি-৩ এর অর্থায়নে করোনা ভাইরাস (কভিড-১৯) প্রতিরোধের জন্য সর্ব সাধারণের মাঝে স্বাস্থ্য সামগ্রী সার্জিকেল মাস্ক, হাত ধোয়া সাবান ও ব্লিচিং পাউডার বিতরণ অনুষ্ঠানে আস্করপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. জিয়াউর রহমান জিয়া এ কথা বলেন। অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সদর উপজেলা আইসিটি অফিসার মো. রুবেল মিয়া, আটোর মাদ্রাসার সুপার মো. আহসান হাবিব, তাজপুর জামে মসজিদের ইমাম মো. আবুল কালাম আজাদ প্রমুখ। এ সময় উপস্থিত ছিলেন ইউপি সদস্য আব্দুর রশিদ, আব্দুল হালিম, মোতাহার হোসেন, আইনুল ইসলাম, মতিউর রহমান, রশিদুল ইসলাম রতন, মোকলেছার রহমান, ওবায়দুর রহমান, পিয়ার উদ্দিন, মহিলা সদস্যা বুলবুলি আরা, সাবিনা ইয়াছমীন ও ফরিদা খাতুন। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন ইউনিয়ন পরিষদের সচিব মশিউর রহমান।

করোনায় মৃত্যুর নতুন রেকর্ড!

করোনায় মৃত্যুর  নতুন রেকর্ড!



নিউজ ডেস্কঃ 
২৪ ঘন্টায় নমুনা পরীক্ষাঃ-১৩,৯৮৮জন
নতুন আক্রান্তঃ-২,৭৩৮জন     
মোট আক্রান্তঃ-১,৬২,৪১৭জন

 মৃত্যুঃ-৫৫জন
 মোট  মৃত্যুঃ-২,০৫২জন

 সুস্থঃ-১,৯০৪জন
 মোট সুস্থঃ-৭২,৬২৫ জন

সুত্রঃ- স্বাস্থ্য অধিদপ্তর, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয় 



সিঙ্গাপুরে কোভিড-১৯ লড়াইয়ে ১৭ হাজার স্বেচ্ছাসেবীর যোগদান

সিঙ্গাপুরে কোভিড-১৯ লড়াইয়ে ১৭ হাজার স্বেচ্ছাসেবীর যোগদান



মোঃ নাঈম শেখ সিঙ্গাপুর প্রতিনিধিঃ
    
সিঙ্গাপুরে প্রায় ১৭১০০ জন স্বেচ্ছাসেবক কোভিড-১৯ লড়াইয়ে যোগ দিতে এগিয়ে এসেছেন। ১১ ই জুন যারা স্বাক্ষর করেছেন, তাদের মধ্যে আগের মাসে ৪ হাজারের বেশি এই স্বেচ্ছাসেবী কাজ করেছিলেন বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। 

১৭১০০ স্বেচ্ছাসেবীর মধ্যে ৬২০০ জন হলেন পেশাদার হেল্পকেয়ার যাদের মধ্যে রয়েছেন দাঁতের ডাক্তার, ফার্মাসিস্ট এবং সহযোগী স্বাস্থ্যসেবক রয়েছেন।
এর মধ্যে কেউ স্বাস্থ্যসেবা কর্মী থেকে অবসর নিয়েছেন কিংবা বেসরকারী অনুশীলন করছেন। বাকী স্বেচ্ছাসেবকরা বিভিন্ন ব্যাকগ্রাউন্ড থেকে আসে এবং অবসর গ্রহণকারীদের পাশাপাশি স্নাতক স্নাতকদেরও অন্তর্ভুক্ত রয়েছেন। 

যেসব স্বেচ্ছাসেবীদের কাজে মোতায়েনের উপযোগী বলে মনে হয় তাদেরকে প্রশিক্ষণ দিয়ে মাঠ পর্যায়ে নিযুক্ত করা হয়। 
সিঙ্গাপুর কোভিড -১৯ পরীক্ষা চালিয়ে যাওয়ায় জন্য ইতিমধ্যে ৩ হাজারেরও বেশি স্বেচ্ছাসেবক অভিবাসী কর্মীদের ডরমিটরি ও অন্যান্য কমিউনিটির সোয়াব টেস্টের সাইটগুলিতে সোয়াব পরীক্ষা করার প্রশিক্ষণ পেয়েছেন।তাদের মধ্যে ৩ শত জন দাঁতেরচিকিৎসক রয়েছেন।

এপ্রিলে সার্কিট ব্রেকারের সময়কালে, ১২৫ জন দাঁতের চিকিৎসক এবং নার্স তিন সপ্তাহে মোট ১৩ হাজার সোয়াব টেস্ট করেছেন।

৮৫ টি ক্লিনিক জুড়ে ২০০ জন দাঁতের চিকিৎসক এখন সোয়াব টেস্ট করাতে সক্ষম। 
প্রশ্নোত্তর পর্বে ডাক্তার এনজি বলেছেন, এন৯৯ ফেস মাস্কস, হ্যাজমাট স্যুট, গগলস এবং ফেস শিল্ড সহ ব্যক্তিগত সুরক্ষা সরঞ্জামগুলিতে কমপক্ষে ৮০ হাজার ডলার ব্যয় করেছে৷ 
২৫ শে জুন, স্বাস্থ্য মন্ত্রী বলেছেন সিঙ্গাপুরের সোয়াব টেস্টের ক্ষমতা ১৩ হাজার থেকে ৪০ হাজার পর্যন্ত বাড়ানোর পরিকল্পনা রয়েছে৷ কারণ অর্থনীতি ধীরে ধীরে পুনরায় চালু হতে শুর করেছে এবং আরও বেশি কর্মকাণ্ডের অনুমতি দেওয়া হচ্ছে।

ঝিনাইদাহে প্রায় ৩০ লক্ষাধিক টাকার সরকারি বিক্রয় নিষিদ্ধ ওষুধ সহ একজনকে গ্রেফতার করেছে র্যাব-৬

ঝিনাইদাহে প্রায় ৩০ লক্ষাধিক টাকার সরকারি বিক্রয় নিষিদ্ধ ওষুধ সহ একজনকে গ্রেফতার করেছে র্যাব-৬






খোন্দকার আব্দুল্লাহ বাশার, ঝিনাইদহ জেলা প্রতিনিধি। 



ঝিনাইদহ র্যাব - ৬ এর  অভিযানে নেতৃত্ব দেন র্যাব  ক্যাম্পের অধিনায়ক অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাসুদ আলম। 
ঝিনাইদহ শহরের চাকলাপাড়া থেকে ৫ জুলাই রবিবার দুপুরে 
প্রায় ৩০ লক্ষাধিক টাকা মূল্যের সরকারি বিক্রয় নিষিদ্ধ ও আমদানী নিষিদ্ধ ঔষধ জব্দ, সহ 
দিপক নামে একজনকে গ্রেফতার  করেছে র্যাব-৬  এর কমান্ডার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাসুদ আলম এসব ওষুধ জব্দ ও তাকে গ্রেফতার করেন । সেসময় উপস্থিত ছিলেন ঝিনাইদহ ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক সুচন্দন মন্ডল ও অন্যান্য কর্মকর্তাবৃন্দ।
এর সাথে যে চক্রটি জড়িত আছেন তাদের তথ্যও পেয়েছে র্যাব।
এই অভিযানকে স্বাগত জানিয়েছেন সর্বস্তরের মানুষ ।

ঝিকরগাছার ছুটিপুর পশুর হাট বসছে আগামীকাল

 ঝিকরগাছার ছুটিপুর পশুর হাট বসছে আগামীকাল




প্রেস বিজ্ঞপ্তি:
যশোর জেলার ঝিকরগাছা উপজেলাধীন ছুটিপুর বাজারের পশুরহাট আগামীকাল ৬ জুলাই সোমবার থেকে পুনরায় চালু হচ্ছে। সম্প্রতি দেশে করোনার প্রাদুর্ভাব দেখা দেওয়ায়  ছুটিপুরের পশুহাট স্থগিত ছিল। যে হাটটি আগামীকাল সোমবার থেকে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার মধ্য দিয়ে পুনরায় চালু হচ্ছে, এই ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট ক্রেতা-বিক্রেতা কে ছুটিপুর পশুরহাটে আসার জন্য বিশেষভাবে অনুরোধ জানানো যাচ্ছে। 
**অনুরোধক্রমে ছুটিপুর পশুহাট কর্তৃপক্ষ।

বিচার পক্ষে না যাওয়ায় ইউপি সদস্যের ওপর হামলা,আহত ৫

বিচার পক্ষে না যাওয়ায় ইউপি সদস্যের  ওপর হামলা,আহত ৫



মোঃএরশাদ হোসেন রনি, মোংলা 
বিচার পক্ষে না যাওয়ায় ইউপি সদস্য এর উপর হামলা চালিয়েছে প্রতিপক্ষরা।এতে ইউপি সদস্য সহ ৫ জন আহন।গুরুতর অবস্থায় ৫জনকে স্হানীয় মোংলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এ ভর্তি করানো হয়।পরবর্তীতে অবস্থার অবনতি হলে ৩ জনকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়,।তাদের মধ্যে এক জনের অবস্থা আংশকা জনক। 

আহতরা হলেন জাহাঙ্গীর মল্লিক(৪০),রাহাত ইজারাদার (২২),আলোমগীর মল্লিক(৪৪),জাহিদ মল্লিক(৩৪),আতিয়ার মল্লিক(৪০)।              

এলাকাবাসী ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, উপজেলার চাঁদপাই ইউনিয়নের মালগাজী গ্রামের পার্থ সরকার (২৫) এক মেয়েকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে অবৈধ সম্পর্ক গড়ে তোলেন। এক পর্যায়ে মেয়েটি গর্ভবতী হয়ে পড়েন এবং একটি কন্যা সন্তানের জন্ম দেন। কিন্তু দীর্ঘদিন ধরে পার্থ ওই মেয়েটিকে স্ত্রীর হিসেবে স্বীকৃতি না দেওয়ায় গতকাল শনিবার সন্ধ্যার পর সালিশ বৈঠক বসে। সেখানে পার্থর সঙ্গে ওই মেয়ের বিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়।
সালিশে ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোল্লা মো. তারিকুল ইসলাম, স্থানীয় ইউপি সদস্য জাহাঙ্গীর মল্লিক, মিঠাখালী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো. ইস্রাফিল হাওলাদারসহ স্থানীয় ব্যক্তিরা উপস্থিত ছিলেন। পার্থ তাৎক্ষণিক বিয়ের সিদ্ধান্ত মেনে নেন। কিন্তু বিচার তাদের পক্ষে না যাওয়ায় ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। এরপর রাত সাড়ে ৯টার দিকে পথিমধ্যে মালগাজী মিশনবাড়ীর মোড়ে সালিশ বৈঠকে থাকা ইউপি সদস্য ও তাঁর সঙ্গে লোকজনের ওপর হামলা চালায় পার্থ ও তাঁর লোকজন। তারা ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে ইউপি সদস্য সহ ৫ জনকে জখম করে। 
পরে আহতদের উদ্ধার করে রাতেই স্থানীয় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়। সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে আহত আলমগীর মল্লিক, রাহাত মল্লিক ও জাহিদ মল্লিককে উন্নত চিকিৎসার জন্য রাতেই খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

এ বিষয়ে ইউপি সদস্য জাহাঙ্গীর মল্লিক বলেন, 'সালিশ মনমতো না হওয়ায় সাবেক ইউপি সদস্য রেজি সরকার,ছাত্রদল নেয়তা রিয়াদ মাহমুদ সহ পার্থ তাঁর পরিবারের লোকজন আমাদের ওপর হামলা চালায়। এর মধ্যে আমার ভাই আলমগীর মল্লিকের অবস্থা খুবই খারাপ। রাহাত, জাহিদ ও তাঁকে খুলনায় পাঠানো হয়েছে।' 

এ বিষয়ে সাবেক ইউপি সদস্য রেজি সরকার বলেন আমার বিরুদ্ধে যে অভিযোগ আনা হয়েছে সেটা সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন ও রাজনৈতিক প্রতিহিংসা মূলক।আমি এ মারামারি সময় সেখানে উপস্হিত ছিলাম না।

এ ঘটনায় মোংলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. ইকবাল বাহার চৌধুরী বলেন, 'হাসপাতালে পুলিশ পাঠানো হয়েছিল। তারা সবকিছু দেখেশুনে এসেছে।ইউপি সদস্য জাহাঙ্গীর মল্লিক এর কাছ থেকে ৭ জনকে আসামী করে একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি।মামলার পক্রিয়া চলছে।

মানবতার কল্যাণ ফাউন্ডেশন সাতক্ষীরা পৌর শাখা গঠনে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত

মানবতার কল্যাণ ফাউন্ডেশন সাতক্ষীরা পৌর শাখা গঠনে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত


আজহারুল ইসলাম সাদী, সাতক্ষীরা প্রতিনিধিঃ
মানবতার কল্যাণ ফাউন্ডেশন সাতক্ষীরা পৌর শাখা গঠনকল্পে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
এলক্ষে আজ রোববার (৫ জুলাই)
মানবতার কল্যাণ ফাউন্ডেশনের সাতক্ষীরা জেলা শাখা অফিসে, বাংলাদেশ মানবতার কল্যাণ ফাউন্ডেশন এর চেয়ারম্যান বিশিষ্ট নাট্র নির্মাতা জি এম সৈকত এর সভাপতিত্ব মত বিনিময় সভায় উপস্থিত ছিলেন,
মানবতার কল্যাণ ফাউন্ডেশনের সাতক্ষীরা জেলা শাখার সভাপতি ও দেবহাটা উপজেলার মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান জি এম স্পর্শ, জেলা শাখার নির্বাহী সদস্য ভগবতী হাজারী, আজমিরা, বাংদহা শাখার প্রধান ডা: অসীম বিশ্বাস, নয়ন বিশ্বাস, প্রশান্ত সরকার, তপু মন্ডল, সুজন পরামানিক, আশিক প্রমূখ।

ঝিনাইদহে আরও ১৩ জন করোনায় আক্রান্ত

ঝিনাইদহে আরও ১৩ জন করোনায় আক্রান্ত



সম্রাট হোসেন, শৈলকুপা উপজেলা প্রতিনিধি ( ঝিনাইদহ)

৫_৭_২০২০ইংতারিখ  কোভিড-১৯ এর আপডেট তথ্য :

অফিসিয়াল ভাবে আমাদের কাছে কুষ্টিয়া_ল্যাব থেকে আরো ৩৪টিনমুনার ফলাফল এসেছে। যার ২১জন_নেগেটিভ এবং ১৩জন_নতুন_আক্রান্ত। 

মোট প্রাপ্ত ফলাফলের সংখ্যা২১৯৮+৩৪=২২৩২
নেগেটিভ_১৯৫৫
আক্রান্ত_২৬৪+১৩=২৭৭

মোট_সংগৃহীত_নমুনার_সংখ্যা_২৫২১

উপজেলা_ভিত্তিক_আক্রান্তের_মোট_সংখ্যা 
সদর_৭৮+৩=৮১
শৈলকূপা_৪৬
হরিনাকুন্ডু_১৪
কালীগঞ্জ_৮৬+১০=৯৬
কোটচাদপুর_২১
মহেশপুর_১৯

নতুন_আক্রান্তদের_এলাকা

সদর উপজেলা 
১.থানা পাড়া,পৌরসভা ২.থানা পাড়া,পৌরসভা ৩.গোপালপুর
              
কালীগঞ্জ-
১.নিশ্চিন্তপুর,নলডাংগা ২.নিশ্চিন্তপুর,নলডাংগা ৩.নিশ্চিন্তপুর,নলডাংগা ৪.নিশ্চিন্তপুর,নলডাংগা ৫.নিশ্চিন্তপুর,নলডাংগা(৫জনই এক পরিবারের) ৬.ফয়েলা ৭.ফয়েলা ৮.পাইক পাড়া ৯.কলেজ পাড়া ১০.ছাইহাটি বিপিন নগর

​মোট_সুস্থতার_সংখ্যা_৯৪+৮=১০২
উপজেলা ভিত্তিক সুস্থতার সংখ্যা
সদর_২৬
শৈলকূপা_১৬
হরিনাকুন্ডু_৬
কোটচাঁদপুর_১১+৭=১৮
কালীগঞ্জ_৩১
মহেশপুর_৪+১=৫

কোভিড_১৯_হাসপাতালে_ভর্তি_রোগীর_সংখ্যা_৯

মোট_মৃত্যুর_সংখ্যা_৬
শৈলকূপা_২+১=৩
কালিগঞ্জ_৩

প্রতাপনগর ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা আব্দুস সোবহান এর বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ

প্রতাপনগর ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা আব্দুস সোবহান এর বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ
 




আহসান উল্লাহ বাবলু , আশাশুনি ( সাতক্ষীরা) প্রতিনিধি: আশাশুনি উপজেলার প্রতাপনগর ইউনিয়ন ভ‚মি সহকারী কর্মকর্তা আব্দুস সোবহান এর বিরুদ্ধে চেক দাখিলা দেওয়ার নামে পানি বন্ধি মানুষের নিকট থেকে লক্ষাধিক টাকা হাতিয়ে নেওয়াসহ দুর্নীতি ও অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া গেছে। কর্মস্থলে নিয়মিত না থাকা, মানুষের সাথে দুর্ব্যবহার করা, টাকা ছাড়া কাজ না করাসহ বিভিন্ন অভিযোগ এনে এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে প্রতিকার প্রার্থনা করে লিখিত আবেদন করা হয়েছে।
দুর্নীতিবাজ ভ‚মি কর্মকর্তার বিরুদ্ধে তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন প্রতাপনগরের পানি বন্ধি অসহায় মানুষ। সরোজমিনে গেলে ভূমি অফিস সংলগ্ন বাজারের বহু মানুষ উপস্থিত হয়ে দুর্নীতিবাজ ভূমি কর্মকর্তার বিরুদ্ধে অভিযোগ করেন। ক্ষতিগ্রস্থ আইয়ুব আলী, লুৎফর জোয়ার্দ্দার, মিজান সরদার, বিধান সরকার, আব্দুল বারি, কাজল তরফদার, মিনহাজ গাজী ও শফিকুল ইসলামসহ আরো অনেকের নিকট থেকে চেক দাখিলা দিয়ে সরকারি রাজস্ব বাদে অতিরিক্ত আনুমানিক লক্ষাধিক টাকা হাতিয়ে নিয়েছে বলে তারা জানান। ঘুর্ণিঝড় আম্পানের ১ মাসের অধিক সময় পার হলেও প্রতাপনগর ইউনিয়ন অদ্যাবধি প্লাবিত হয়ে আছে। মানুষের মাথা গুজার ঠাঁই নাই বললেই চলে। পরিবার পরিজন নিয়ে বেঁচে থাকার জন্য জমি ক্রয় বিক্রয় এর চেক দাখিলা নাম পত্তন করার জন্য ইউনিয়ন সহকারী ভ‚মিকর্মকর্তা আব্দুস সোবাহান এর কাছে গেলে তিনি সরলতার সুযোগটি আর হাত ছাড়া না করে উল্লেখিত ব্যক্তিদের নিকট লক্ষাধিক টাকা চাপিয়ে দিলে কোনো উপায়ন্তর না পেয়ে উক্ত ভ‚মি অফিসের নামধারী দালালের সহযোগিতায় ভূমি কর্মকর্তা বহায় তবিয়তে দুর্নীতি করে চলেছেন। বাধ্য হয়ে তাদের দাবী মেনে নিয়ে চেক দাখিলা গ্রহণ করতে হয়েছে বলে তারা জানান। এছাড়া এলাকায় অবৈধ ভাবে বালি উত্তোলনের ব্যাপারে ইউএনও মহোদয়কে খবর না দিয়ে আর্থিক সহযোগিতা গ্রহন, ক্ষতিগ্রস্তদের ঘর দেওয়ার তালিকাভুক্ত করার নামে অর্থ আদায়সহ বিভিন্ন অভিযোগ করেছেন এলাকার ভুক্তভোগিরা। গত ৩০ জুন উক্ত তহশীলদার তার বরাবরের অনিয়মের মত অফিসে অনুপস্থিত ছিলেন। আর্থিক বছরের শেষ দিনে যেখানে হিসাব নিকাশ ও কর আদায়ের ব্যাপারে অনেক কিছু করনীয় থাকে, সেখানে বিনা ছুটিতে তিনি কমূস্থলে অনুপস্থিত ছিলেন। এমনকি মোবাইলে কথা বলতে চাইলেও তিনি রিসিভ করেননি। দাখিলা কাটতে কিংবা অফিসের জরুরী কাজে আসা অনেকে ফিরে যেতে বাধ্য হন। অফিসে গিয়ে তাকে না পেয়ে তার মোবাইলে নিজেরা ও অফিসের কর্মচারীদের দিয়ে ফোন করা হলেও তিনি রিসিভ করেননি। তৎক্ষণাৎ উপজেলা ভূমি অফিসের বড়বাবুর কাছে মোবাইলে জানতে চাইলে তিনি জানান, কোন লিখিত ছুটির আবেদন তিনি করেননি। সহকারী কমিশনার (ভূমি) শাহিন সুলতানার কাছে মোবাইলে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, তিনি (ইউনিয়ন সহকারী ভূমি কর্মকর্তা) ছুটি নেননি। তবে একটু দেরিতে অফিসে যাবেন বলে অনুমতি নিয়েছিল বলে তিনি জানান। কিন্তু না সারা দিনই তিনি অফিসে পৌছেননি। পরবর্তীতে মোবাইলে তার সাথে কথা হলে তিনি বিশেষ কারণে অফিসে যেতে পারেননি বলে জানান এবং তার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ মিথ্যা বলে দাবী করেন। এব্যাপারে আশাশুনি সহকারী কমিশনার (ভ‚মি) শাহিন সুলতানার নিকট জানতে চাইলে তিনি সাংবাকিদের বলেন, এমন কোনো অভিযোগ আমার কাছে আসেনি। যদি এমন কিছু অনিয়ম হয়ে থাকে, প্রমাণ পেলে অবশ্যই ব্যবস্থা নেব।

পা হারানো সেই ফজলুল হকের পাশে দাঁড়ালো ইন্দুরকানী উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আতিকুর রহমান ছগির

পা হারানো সেই ফজলুল হকের পাশে দাঁড়ালো ইন্দুরকানী উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আতিকুর রহমান ছগির




মিঠুন কুমার রাজ,  
পিরোজপুর জেলা প্রতিনিধি। 

 মহামারী করোনা ভাইরাসের কারণে জাতির এই ক্রান্তিলগ্নে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের নিয়ে অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন ইন্দুরকানী উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আতিকুর রহমান ছগির।

ইন্দুরকানী উপজেলার চন্ডিপুরের সন্ন্যাসী খেয়াঘাটের কাছে অসহায় ফজলুল হকের পাশে নিজ অর্থায়নে এমন মানবিকতার হাত বাড়িয়ে দিলেন উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আতিকুর রহমান ছগির। ফজলুল হক পা হারিয়ে স্ত্রী সন্তানদের নিয়ে দারিদ্রতার মধ্যে জীবন যাপন করতেছেন । জীবিকার তাগিদে বেঁচে নিয়েছিলেন নদীতে মাছ ধরার পথ। এমন দারিদ্রতার মধ্যে মাথার উপরে ছাঁদটুকুও কোন রকমের পলিথিনের ছাওনি দিয়ে তৈরী করেছেন। এমন অসহায় হতদরিদ্রের কথা শুনে তার পাশে দাঁড়িয়েছেন আতিকুর রহমান ছগির। আজ প্রচুর বৃষ্টি উপেক্ষা করে এই মহৎ কাজে ছুটে যায় ফজলুল হকের বাড়িতে।  

তিনি তার সহকর্মীদের সাথে নিয়ে ফজলুল হককে  নিজ অর্থায়নে একটি লুঙ্গি এবং স্ত্রীর জন্যে শাড়ী ও খাদ্য সামগ্রীর মধ্যে চাল, ডাল, আলু, পিয়াজ, তেল প্রদান করেন।
এ সময় আতিকুর রহমান ছগিরের সাথে আরও উপস্থিত ছিলেন ইন্দুরকানী উপজেলা ছাত্রলীগের সহ–সভপতি আসাদুজ্জামান, সহ–সভাপতি রাহাত গাজী। সাবেক ছাত্রলীগ নেতা বাপ্পি মোল্লা,ইন্দুরকানী সরকারী কলেজ ছাত্রলীগ নেতা হাসান মাহমুদ, তৌকির খান বাবু, মোঃ রাসেল হাওলাদার।বালিপাড়া ইউনিয়ন ছাত্রলীগ নেতা এম.এইচ.ইমন, ইমরান।  সদর ইউনিয়ন ছাত্রলীগ নেতা পারভেজ হোসেন নয়ন হাওলাদা ও হাসান সহ ছাত্রলীগের অন্যান্য নেতাকর্মী।

ইন্দুরকানী উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আতিকুর রহমান ছগির  বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা নিজ নিজ জায়গা থেকে অসহায় মানুষের পাশে সহযোগীতার হাত বাড়িয়ে দিচ্ছে। ছাত্রলীগ জাতির যেকোনো দূর্যোগে সবসময় অগ্রণী ভুমিকা পালন করেছে, এই করোনা মহামারীতেও ছাত্রলীগ নিজেদের সর্বোচ্চ পরিশ্রম ও সহযোগিতা নিয়ে অসহায় মানুষের পাশে থাকবো ইনশাআল্লাহ।’

উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আতিকুর রহমান ছগির ঐ বৃদ্ধা অসহায় ফজলুল হককে একটি ঘর পাইয়ে দেওয়ার জন্যে আশ্বস্ত করেন। 

তিনি সমাজের বিত্তবান  সবাইকে জাতির এই ক্রান্তিলগ্নে অসহায় জনগণের পাশে থাকার জন্য আহবান জানায়।

যশোরে নিম্নমানের ইট, খোয়া এবং বালুর পরিবর্তে মাটি দিয়ে চলছে রাস্তার কাজ !

যশোরে নিম্নমানের ইট, খোয়া এবং বালুর পরিবর্তে মাটি দিয়ে চলছে রাস্তার কাজ !




সুমন হোসেন,  যশোর প্রতিনিধি।। 
যশোরের চৌগাছা উপজেলার চৌগাছা সদর ইউনিয়নের কড়ইতলা-কয়ারপাড়া ইটের রাস্তা (এইচবিবি ও সোলিং) উঠিয়ে পিচ দিয়ে পাকা করার কাজে নিম্নমানের ইট, খোয়া এবং বালুর পরিবর্তে মাটি দিয়ে কাজ করার অভিযোগ উঠেছে। তারা আরো বলেন,প্রতিবাদ করেও কোনো লাভ হয়নি। এমনকি উপজেলা প্রকৌশল অফিসের কোন লোকজনই রাস্তার কাজের সাইডে ঠিকমত আসেনও না, খোঁজ খবরও নেন না। এদিকে অভিযোগ সঠিক নয় বলে দাবি ওই ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের।
চৌগাছা সদর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের নেতা সোহাগ হোসেন, হিরো আহমেদ, ফারুখ হোসেন বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা গ্রাম হবে শহর। সে অনুযায়ী উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় সড়ক পাকাকরনের কাজ চলছে। কিন্তু এইসব রাস্তা পাকাকরণের কাজে শুরু থেকেই অনেক অনিয়মের অভিযোগ রয়েছে। রাস্তার এসকল কাজে নিম্নমানের ইট, খোয়ার সাথে বালুর পরিবর্তে মাটি ব্যবহার করা হচ্ছে। মাটি ছিটিয়ে লেবেল করার চেষ্টাও চলছে। আমরা এর প্রতিবাদ করেছি এবং করছি। তবে ওই ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের সাইড ম্যানেজার আবুল কাশেম আমাদের কথার কোন পাত্তাই দেন নি। তিনি বলেছেন আমরা এভাবেই কাজ করবো। আপনাদের যা করার করেন। স্বেচ্ছাসেবকলীগের নেতা বিএম উজ্জল হোসেন রনি বলেন, ‘ইট, বালু, খোয়া কোনোটাই ঠিক নাই। যে পরিমাণ খোয়া ব্যবহার করার কথা, তার চেয়ে অনেক কম দেওয়া হচ্ছে। খোয়া দেওয়া হচ্ছে নিম্নমানের। বালুও নিম্নমানের। রাস্তার দুই পাশে প্রথম শ্রেণির ইট দিয়ে এজিং করার কথা থাকলেও করা হচ্ছে তৃতীয় শ্রেণির ও কোথাও কোথাও দ্বিতীয় শ্রেণির ইট দিয়ে। স্থানীয় কয়েকজন চা দোকানদার জানান, কাজটি একেবারেই জঘন্য হচ্ছে। উপজেলা এলজিইডি অফিসের লোকজকে রাস্তা নির্মান কাজ দেখার জন্য কোনোদিনই কাউকে আসতে দেখিনি। স্থানীয়রা আরো জানান, উপজেলা প্রকৗশলীকে ফোনে জানিয়েও কোনো লাভ হয়নি। বরং উল্টো যারা অভিযোগ করছে তাদেরই ধমক দিয়েছেন তিনি। অভিযোগের বিষয়ে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানটির সাইড ম্যানেজার আবুল কাশেম বলেন খোয়ার সাথে কিছু মাটি ছিল তাই দেয়া হয়েছে। সারা রাস্তায়ই তো এভাবে মাটি দিয়েছেন প্রশ্নের উত্তরে তিনি নানা ভাবে বুঝাতে থাকেন খোয়ার সাথে যে মাটি ছিল সে মাটিই রাস্তায় গেছে। তার দাবি আমরা নিয়মানুযায়ীই কাজ করছি। উপজেলা প্রকৌশল অফিসের লোকজন নিয়মিত সাইড দেখতে আসছেন। তবে কাজ চলাকালীন সময়ে সাইডে প্রকৗশল অফিসের কাউকে পাওয়া যায়নি।
এ বিষয়ে উপজেলা প্রকৌশলী আব্দুল মতিন বলেন, আমাদের লোক নিয়মিত কাজ তদারকি করছেন। আমরা অনিয়মের কোন অভিযোগ পাইনি। আপনার কাছ থেকে জানতে পারলাম খোয়ার সাথে মাটি ব্যবহার করা হচ্ছে। আমি খোজ নিয়ে দেখছি। প্রমান পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। কত কিলোমিটার রাস্তার এবং বরাদ্দের পরিমান জানতে চাইলে এড়িয়ে যান প্রকৌশলী আব্দুল মতিন।

জলঢাকায় অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ

জলঢাকায় অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ




মোঃ হাবিবুর রহমান শাকিল ডিমলা নীলফামারী প্রতিনিধি:



নীলফামারীর জলঢাকায় বালারপুকুর মহিলা টেকনিক্যাল স্কুল অ্যান্ড বিজনেন্স ম্যানেজমেন্ট কলেজের (বিএমআই) অধ্যক্ষ আবুল কাসেমের বিরুদ্ধে জাল কাগজপত্রের মাধ্যমে কলেজ এমপিভুক্তিকরণের চেষ্টা, শিক্ষক নিয়োগ বাণিজ্যসহ ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত অভিযোগ করেছেন ওই কলেজের ভুক্তভোগী শিক্ষক-কর্মচারীসহ স্থানীয়রা।

জানা যায়, ২০১৯ খ্রিষ্টাব্দের ৩০ এপ্রিল কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের অধীনে এমপিওভুক্তির তালিকায় নাম আসে ওই প্রতিষ্ঠানটির। 
অভিযোগের প্রেক্ষিতে সরেজমিনে গেলে কলেজ সংলগ্ন স্থানীয়রা দৈনিক কপোতাক্ষ নিউজে জানান, এমপিও তালিকায় নাম আসার পর থেকে তড়িঘরি করে কলেজের অবকাঠামো নির্মাণ, চেয়ার-বেঞ্চ তৈরি, যাতায়তের রাস্তা তৈরিসহ যাবতীয় কাজ সম্পন্ন করেন অধ্যক্ষ। এমপিও তালিকায় নাম আসার আগে একজন শিক্ষক-কর্মচারীও ওই প্রতিষ্ঠানে দেখা যায়নি বলেও জানান তারা।
অভিযোগকারী ওই প্রতিষ্ঠানের কর্মচারী হাবিব মোস্তফা আনিছুজামান দৈনিক কপোতাক্ষ নিউজকে জানান, আমরা নিয়োগপ্রাপ্ত হলেও অধ্যক্ষ আমাদেরকে নিয়োগ সংক্রান্ত কোনো কাগজপত্র দেননি। এমনকি কলেজ এমপিওভুক্তির পর এক, দুইজন শিক্ষক-কর্মচারী রেখে বাকি সব শিক্ষক-কর্মচারীদেরকে মোটা অঙ্কের অর্থের বিনিময়ে নতুন করে নিয়োগ দেন অধ্যক্ষ আবুল কাসেম।
তিনি আরও জানান, অধ্যক্ষ আবুল কাসেম সীমাহীন দুর্নীতি ও জালিয়াতির মাধ্যমে অন্য মাদরাসার এমপিওভুক্ত শিক্ষিকা নিজের স্ত্রীকে নিয়োগ দেখিয়ে জাল ও ভুয়া কাগজপত্র তৈরি করে কলেজটি এমপিওভুক্তির চেষ্টা করছেন।
অভিযোগের বিষয় জানতে কলেজের অধ্যক্ষ আবুল কাসেমের সাথে বিভিন্নভাবে যোগাযোগের চেষ্টা করে এমনকি তার ব্যবহৃত মোবাইল ফোন নম্বরে একাধিকবার কল দিলেও তিনি ফোন রিসিভ করেনি।
অভিযোগ প্রাপ্তির কথা স্বীকার করে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার চঞ্চল কুমার ভৌমিক দৈনিক কপোতাক্ষ নিউজে বলেন, “উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নির্দেশে আমি অভিযোগের বিষয়টি তদন্ত করেছি। সেখানে বেশ কিছু সমস্যা আছে। উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে লিখিত আকারে জানানো হবে।”
উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাহবুব হাসান দৈনিক কপোতাক্ষ নিউজকে জানান, “তদন্ত প্রতিবেদনের আলোকে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।”