প্রতাপনগর ইউনিয়নে ক্রীড়া সামগ্রী প্রদান

প্রতাপনগর ইউনিয়নে ক্রীড়া সামগ্রী প্রদান
 


আহসান উল্লাহ বাবলু উপজেলা প্রতিনিধি     ঃ আশাশুনি উপজেলার প্রতাপনগর ইউনিয়নে ক্রীড়া সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে। সোমবার সকালে প্রতাপনগর ইউনিয়ন পরিষদের উদ্যোগে এ ক্রীড়া সামগ্রী বিতরণ করা হয়।  

উপজেলার প্রত্যান্ত এলাকায় খেলাধূলার পরিবেশ সৃষ্টি ও যুব সমাজকে ক্রীড়াুখী করতে সরকার বিভিন্ন ভাবে কাজ করে যাচ্ছে। এলক্ষ্যকে সামনে রেখে আশাশুনি উপজেলা পরিষদ উপজেলার ১১ ইউনিয়নে ক্রীড়াবিদ সৃষ্টির লক্ষ্যে ক্রীড়া সামগ্রী বিতরণের উদ্যোগ গ্রহন করেছে। উপজেলা পরিষদের বরাদ্দকৃত খেলাধুলার সরঞ্জাম প্রতাপনগর ইউনিয়নের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও ক্লাবকে প্রদান করা হয়েছে। ইউনিয়ন পরিষদের বার বার নির্বাচিত চেয়ারম্যান শেখ জাকির হোসেন এনব ক্রীড়া সামগ্রী বিতরণ করেন। এসময় ইউনাইটেড একাডেমি প্রতাপনগর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জয়দেব কুমার দাশ, ইউপি সদস্য, মেম্বার, গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

প্রতারণা নয় জনগন প্রণোদনা চায় : মোমিন মেহেদী

প্রতারণা নয় জনগন প্রণোদনা চায় :  মোমিন মেহেদী

প্রেস বিজ্ঞপ্তিঃ
নতুনধারা বাংলাদেশ এনডিবির চেয়ারম্যান মোমিন মেহেদী বলেছেন, 
প্রতারণা নয় জনগন প্রণোদনা চায়। করোনা পরিস্থিতিতে উন্নত 
বিশ্বেই শুধু নয়; মধ্যম আয়ের দেশগুলোতেও যখন নিরন্ন মানুষের পাশে 
সরকারি সহায়তা ছিলো তখন বাংলাদেশে প্রণোদনা নয় জনগন 
প্রতারণা পেয়েছে। বলা হয়েছিলো- ব্যাংক লোন সহজ শর্তে দেয়া হবে, 
বাড়ি ভাড়া সমস্যার সমাধান হবে, দ্রব্যমূল্য স্থিতিশীল রাখা হবে; কিন্তু 
বাস্তবে তার উল্টো চিত্র। একদিকে করোনা অন্যদিকে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ 
মানুষের পাশে সরকার যেমন নয়; সরকারের কোন এমপি-মন্ত্রী-আমলারাও 
আন্তরিক নয়। এমন পরিস্থিতি থেকে উত্তরণের জন্য নতুন প্রজন্মের 
প্রতিটি প্রতিনিধিকে সামর্থ অনুযায়ী এগিয়ে আসতে হবে। 
দুঃখজনক হলেও সত্য যে, জাতিকে ৬ কোটি মানুষের প্রণোদনার যে 
হিসেব দেখানো হয়; তাতে জনপ্রতি আড়াই কেজী চাউল ও ১৯ টাকা 
১৪ পয়সা বরাদ্দ ছিলো। 
করোনার পরিস্থিতিতে বন্যাক্রান্ত রৌমারি-রাজিবপুর ও মেলান্দহ পরিদর্শন 
ও সহযোগিতা প্রদানের বিষদ বর্ণনা ও নতুন বন্যাক্রান্ত মুন্সিগঞ্জ-
টাঙ্গাইলে সফর প্রসঙ্গে আলোচনা ও মতবিনিময় সভায় তিনি উপরোক্ত 
কথা বলেন। ২০ জুলাই বিকেলে ধারার কার্যালয়ে অর্থ উপকমিটির 
চেয়ারম্যান সাবেক ব্যাংকার রাজিব চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত 
সভায় প্রেসিডিয়াম মেম্বার মৃণালি চৌধুরী, সিনিয়র ভাইস 
চেয়ারম্যান শান্তা ফারজানা, কেন্দ্রীয় মহাসচিব নিপুন মিস্ত্রি, ঢাকা 
মহানগর দক্ষিণের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক কায়কোবাদ 
মিজান প্রমুখ বক্তব্য রাখেন। এর আগে ১৭ ও ১৮ জুলাই মোমিন মেহেদী 
সহ ধারার নেতৃবৃন্দ বন্যাক্রান্ত এলাকায় নগদ টাকা, খাবার স্যালাইন ও 
শুকনো খাবার বিতরণ করেন। 

কুষ্টিয়া প্রেস ক্লাব কেপিসির উদ্যোগে কাঙাল হরিনাথ মজুমদারের জন্মবার্ষিকী পালিত

কুষ্টিয়া প্রেস ক্লাব কেপিসির উদ্যোগে কাঙাল হরিনাথ মজুমদারের জন্মবার্ষিকী পালিত


      
                           
কুষ্টিয়া প্রতিনিধি।। 
মোঃ চঞ্চল হোসেন।। 


 কুষ্টিয়া প্রেস ক্লাব কেপিসির উদ্যোগে আজ বিকেল ৫ টায় কেপিসির কার্যালয় থেকে ভার্চুয়াল আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন কুষ্টিয়ার মিডিয়াবান্ধব ডিসি মোঃ আসলাম হোসেন। তিনি বলেন, কাঙাল হরিনাথ মজুমদার ছিলেন সমাজের শিক্ষক। তিনি একাধারে সাংবাদিকতার পথিকৃ ও সমাজ সংস্কারক। কাঙাল হরিনাথের জীবন ও দর্শন সাংবাদিকদের চলার পথের পাথেয়। সাংবাদিক সমাজের গর্ব যে তাদের কাঙাল হরিনাথের মত একজন পূর্বসূরী, অগ্রজ, অগ্রদূত, পথিকৃৎ রয়েছেন। তিনি কাঙালের জন্মদিনে সকল সাংবাদিকের মঙ্গল কামনা করেন। বিশেষ অতিথি ছিলেন জাতীয় প্রেস ক্লাবের সহ সভাপতি ওমর ফারুক, বিএফইউজের মহাসচিব শাবান মাহমুদ। প্রধান আলোচক ছিলেন, কুষ্টিয়া সরকারী মহিলা কলেজের উপাধ্যক্ষ প্রফেসর শিশির কুমার রায়। স্বাগত বক্তা ছিলেন কেপিসির সাধারণ সম্পাদক সোহেল রানা।  সভাপতিত্ব করেন কেপিসির সভাপতি রাশেদুল ইসলাম  বিপ্লব। সঞ্চালনা করেন সাংবাদিক লেখক ইমাম মেহেদী।

কুষ্টিয়া দৌলতপুরে র‌্যাবের অভিযানে ৪০৫ পিস ইয়াবা উদ্ধার

কুষ্টিয়া দৌলতপুরে র‌্যাবের অভিযানে ৪০৫ পিস ইয়াবা উদ্ধার




কুষ্টিয়া  প্রতিনিধিঃ
কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে  অভিযান চালিয়ে  ৪০৫ পিস ইয়াবাসহ, মাদক ব্যবসায়ী শাহাজামাল ওরফে ফনি (৪০) কে আটক করেছে র‌্যাব। সে দৌলতপুর উপজেলার চকদৌলতপুর গ্রামের মৃত দিদার মন্ডলের ছেলে। সোমবার দুপুর ২টায় র‌্যাব এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।
র‌্যাব সূত্র জানায়, মাদক পাচার ও ক্রয়-বিক্রয়ের গোপন সংবাদ পেয়ে ডি এডি সিরাজুল ইসলাম'র নেতৃত্বে র‌্যাব-৬ ঝিনাইদহ ক্যাম্পের অভিযানিক দল রোবাবার দুপুর ২.৩০টার দিকে দৌলতপুর উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সের সামনে অভিযান চালিয়ে মাদক ব্যবসায়ী শাহাজামাল ওরফে ফনিকে আটক করে এবং তার দেহ তল্লাশী করে ৪০৫ পিস ইয়াবা ও মাদক ক্রয়-বিক্রয়ের ৪ হাজার ৩৫০ টাকা উদ্ধার করে। সে দীর্ঘদিন ধরে মাদক ব্যবসার সাথে জড়িত বলে এলাকাবাসী জানিয়েছে। মাদক ব্যবসায়ী ফনির বিরুদ্ধে মাদক আইনে মামলা দিয়ে দৌলতপুর থানায় সোপর্দ করেছে র‌্যাব । এদিকে  তদন্ত করে এই ব্যবসার সাথে যারা জড়িত তাদের আইনের আওতাধীন করার অনুরোধ জানিয়েছে এলাকাবাসী আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে।

ইসরাত জাহান আন্তর্জাতিক অ্যাওয়ার্ডে ভূষিত

ইসরাত জাহান আন্তর্জাতিক অ্যাওয়ার্ডে ভূষিত




মোহাঃ ফরহাদ হোসেন কয়রা (খুলনা) প্রতিনিধিঃ

নেপাল -বাংলাদেশ ফ্রেন্ডশিপ এ্যাসোসিয়েশন কর্তৃক আয়োজিত আন্তর্জাতিক সম্মাননায় ভূষিত হয়েছেন K2K Wears International এর সত্ত্বাধিকারী ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক জনাব ইসরাত জাহান। 
বর্তমান কোভিড ১৯ পরিস্থিতি ও সুন্দরবন তীরবর্তী এলাকার জনপদের পিছিয়ে পড়া মানুষদের  কল্যাণে দীর্ঘদিন ধরে  তিনি কাজ করে যাচ্ছেন। 
ইসরাত জাহান বিশ্বব্যাপী চলমান দূর্যোগ করোনা ভাইরাসে ঘরবন্দী অসংখ্য  পরিবারে খাদ্য ও স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী সহায়তা প্রদান করে আসছেন।
 সুন্দরবন তীরবর্তী উপকূল এলাকার বাঘ বিধবাদের কল্যাণে গৃহীত নানা পদক্ষেপে সবসময় পৃষ্ঠপোষকতা করে আসছেন তিনি। উপকূলে বসবাসরত ক্ষুদ্র নৃ- তাত্ত্বিক  জনগোষ্ঠী আদিবাসী মুন্ডা সম্প্রদায়ের শিশুদের শিক্ষা সহায়তা কার্যক্রমে তাঁর বিশেষ অবদান রয়েছে। 
বর্তমানে উপকূল এলাকায় সুপার সাইক্লোন আম্পানে ক্ষতিগ্রস্থ পানিবন্দী শতাধিক পরিবার  ইসরাত জাহানের মাধ্যমে খাদ্য সামগ্রী সহায়তা পেয়েছেন।
 এছাড়াও পানিবন্দী পরিবারগুলোর কিশোরীদের স্বাস্থ্য সুরক্ষার বিষয়টি অধিক গুরুত্ব দিয়ে  "উপকূল কিশোরী স্বাস্থ্য সুরক্ষা ক্যাম্পেইন ও স্যানিটারি ন্যাপকিন বিতরণ " চলমান কর্মসূচীতে বড় পরিসরে পৃষ্ঠপোষকতা করছেন এই মহিয়সী নারী।  
 উপকূল এলাকার তরুণ সমাজসেবক আশিকুজ্জামান বলেন,  ইসরাত জাহানের অসামান্য অবদান উপকূলবাসী কৃতজ্ঞতার সাথে আজীবন স্মরণ করবে। তাঁর এই আন্তর্জাতিক সম্মাননা লাভে আমরা উচ্ছ্বসিত। আমরা তাঁর উত্তরোত্তর সমৃদ্ধি কামনা করছি।

সিরাজগঞ্জে রোপা বীজতলা তৈরিতে ব্যস্ত সময় পার করছে

সিরাজগঞ্জে রোপা বীজতলা তৈরিতে ব্যস্ত সময় পার করছে
 



মাসুদ রানা সিরাজগঞ্জ জেলাপ্রতিনিধিঃ আষাঢ়ের শেষে সিরাজগঞ্জ জেলার কৃষকরা বৃষ্টিতে রোপা বীজতলা তৈরিতে ব্যস্ত স আমনেরময় পার করছেন। চলতি মৌসুমের শুরুতেই দফায় দফায় ভারী বর্ষণের কারণে প্রান্তিক কৃষকরা ক্ষতির মুখে পড়েন। তাই এ অঞ্চলের কৃষকরা নতুন স্বপ্ন বুকে নিয়ে বর্ষা মৌসুমের একমাত্র ফসল রোপা আমন চাষের পূর্ব প্রস্তুতি হিসেবে বীজতলা তৈরি করছেন।
সিরাজগঞ্জ জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, চলতি মৌসুমে জেলার ৯ উপজেলায় ৩ হাজার ৫শ ২০ হেক্টর জমিতে রোপা আমনের বীজতলা তৈরির লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। এখন পর্যন্ত ৩ হাজার ৪২ হেক্টর জমিতে বীজতলা তৈরি হয়েছে। জেলায় বিভিন্ন উপজেলায় চাষকৃত উচ্চ ফলনশীল রোপা আমন ধানের জাতগুলোর মধ্যে উফসী ব্রি-ধান:-৩২, ৩৩, ৩৪, ৩৯, ৪৯, ৫১, ৫২, ৬২, ৭১, ৮০ স্বর্ণা উল্ল্যেখযোগ্য।
সদর উপজেলার ৯নং কালিয়া হরিপুর ইউনিয়নে বারাকান্দি কালিয়া হরিপুর গ্রামের কৃষক সাহাদুল ইসলাম ১ বিঘা ও মোতালেব ২ বিঘা জমিতে রোপা আমনের বীজতলা তৈরি করেছেন। অতিবৃষ্টি ও বন্যায় ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কা করছেন। জেলার বিভিন্ন উপজেলায় কৃষকরা রোপা আমনের বীজতলা তৈরি ও বীজ রোপণে ব্যস্ত সময় পার করছেন।

আশাশুনি হাসপাতাল থেকে ৬ জনের নমুনা সংগ্রহ

আশাশুনি হাসপাতাল থেকে ৬ জনের নমুনা সংগ্রহ



আহসান উল্লাহ বাবলু উপজেলা   প্রতিনিধি ॥ আশাশুনি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ৬ জনের করোনা ভাইরাস শনাক্তের জন্য নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। হাসপাতালের নিজস্ব উদ্যোগে করোনা সংগ্রহকারী টিম উপজেলার করোনা সংক্রমণ হচ্ছে কিনা তা নির্ণয়ের জন্য সরকারি সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নে নিয়মিত কার্যক্রম পরিচালনা করে যাচ্ছে। উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ সুদেষ্ণা সরকারের দিক নির্দেশনা মোতাবেক নমুনা সংগ্রহ টিম রবিবার হাসপাতালে আগত ৬ ব্যক্তির ৬টি নমুনা সংগ্রহ করেন। উল্লেখ্য, আশাশুনি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রতি সপ্তাহের রবি, সোম ও বুধবার বেলা ১১টা থেকে ১টা পর্যন্ত নমুনা সংগ্রহ করা হয়।

বুধহাটায় বাড়ির লোকজনকে চেতনানাশক খাইয়ে অচেতন করে ডাকাতি

বুধহাটায় বাড়ির লোকজনকে চেতনানাশক   খাইয়ে অচেতন করে ডাকাতি



আহসান উল্লাহ বাবলু উপজেলা প্রতিনিধি   ঃ আশাশুনি উপজেলার বুধহাটা ইউনিয়নে বাড়ির লোকজনকে চেতনানাশক দ্রব্য খাইয়ে ডাকাতি সংঘটিত হয়েছে। রবিবার (১৯ জুলাই) দিবাগত রাতে ইউনিয়নের বেউলা গ্রামে এঘটনা ঘটে।

বুধহাটা ইউনিয়নের বেউলা গ্রামে মৃত বলাই কুষ্ণ ব্যানার্জীর পুত্র সুকুমার ব্যানার্জী (৫০) বাড়ির অন্যদের সাথে রাতের খানা খাওয়ার পর রাত্র ১১ টার দিকে ঘুমিয়ে পড়েন। সোমবার সকালে বাড়ির কনিষ্ট সদস্য (রাতের খাবার আগেই খেয়ে নেওয়া) ঐশী ব্যানার্জী (৮) ঘুম থেকে জেগে দেখে কেউ উঠেনি। ডাকাডাকি করেও কেউ সাড়া না দেওয়ায় সে ভীত হয়ে ছুটে পাশের লোকজনকে ডাকে। পাশের লোকেরা সেখানে গিয়ে বুঝতে পারে অচেতন হয়ে পড়ে আছে। তখন একেএকে অন্যরা সেখানে উপস্থিত হয়ে দেখতে পায় ঘরের আলমারি, সুটকেসসহ মালামাল তছনছ হয়ে আছে। এবং ঘরের পিছনের জানালার দরজা ও গ্রীল ভাঙ্গা। দ্রুত স্থানীয় চিকিৎসককে আনা হলে তিনি স্যালাইন ও অন্য ঔষধ দিয়ে চিকিৎসা শুরু করেন। খবর পেয়ে পুলিশ পরিদর্শন (তদন্ত) মাহফুজুর রহমান ঘটনাস্থানে পৌছে সুরতহাল রিপোর্ট তৈরি করেন। বিকাল পর্যন্ত বাড়ির মালিক সুকুমার ব্যানার্জী, স্ত্রী জয়শ্রী ব্যানার্জী, পুত্র ভিক্টর ব্যানার্জী ও মাছবি ব্যানার্জী বেহুশ হয়ে চিকিৎসাধীন ছিলেন। তবে কেউ কেউ চেতনা ফিরে পাওয়ার পর ১১ ভরি স্বর্ণের অলঙ্কার ও নগদ লক্ষাধিক টাকাসহ মূল্যবান মালামাল ডাকাতরা নিয়ে গেছে বলে প্রাথমিক ভাবে জানাগেছে।

নাগরপুরে দিঘিতে গোসল করতে গিয়ে পানিতে ডুবে এক কন্যা শিশুর মৃত্যু

নাগরপুরে দিঘিতে গোসল করতে গিয়ে পানিতে ডুবে এক কন্যা শিশুর মৃত্যু
,
   
   হাসান সাদী(টাংগাইল) প্রতিনিধিঃ টাংগাইলের নাগরপুরে পানিতে ডুবে এক শিশুর  মৃত্যু হয়েছে। 

আজ সোমবার,২০ জুলাই ২০২০ খ্রি. নাগরপুর উপজলার সদর ইউনিয়নের কাঠুরী গ্রামে দিঘি (উপেন্দ্র সরেবর) ঘাটে সঙ্গীদের সাথে  গোসল করতে গিয়ে পানিতে ডুবে শিশুটির মৃত্যু হয়।      

এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, শিশুটির নাম শ্রাবণী (১০)।বাড়ি নাগরপুর উপজেলার  কাঠুরী গ্রামের মোঃ হোসেন মিয়ার মেয়ে। দিঘীতে শিশু শ্রাবণী তার আত্বীয়দের সাথে গোসল করার সময় হঠাৎ পানিতে তলিয়ে যায় শ্রাবণী তারপর শিশু শ্রাবণীকে খুঁজে না পেয়ে আশেপাশের সবাইকে জানালে তারা পানিতে নেমে খোজাখুজি করে শ্রাবণীকে  পানির নিচ থেকে উদ্ধার করে নাগরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। সেখানে  কর্তব্যরত চিকিৎসক শিশু শ্রাবণীকে মৃত ঘোষণা করেন।শিশুটির  মৃত্যুতে এলাকা ও পরিবারের মাঝে শোকের ছাড়া নেমে এসেছে।

ঝিকরগাছায় অ-প্রধান শস্য উৎপাদন ও বাজারজাত করণ কর্মসূচীর উদ্বোধন

ঝিকরগাছায় অ-প্রধান শস্য উৎপাদন ও বাজারজাত করণ কর্মসূচীর উদ্বোধন



মোঃ ইকরামুল করিম সৈকত, ঝিকরগাছা (যশোর) প্রতিনিধিঃ

যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলায় বাংলাদেশ পল্লী উন্নয়ন বোর্ড ঝিকরগাছার আয়োজনে "দারিদ্র বিমোচনের লক্ষ্যে পুষ্টি সমৃদ্ধ উচ্চমূল্যের অ-প্রধান শস্য উৎপাদন ও বাজারজাতকরণ কর্মসূচি" শীর্ষক প্রকল্প অপ্রধান শস্য উৎপাদন ও সংরক্ষণ বিষয়ক প্রযুক্তিগত  কলাকৌশলের উপর উপকারভোগী সদস্যদের উপজেলা পর্যায়ে ০৪(চার) দিন ব্যাপী প্রশিক্ষণের শুভ উদ্বোধন করেন ঝিকরগাছা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান জনাব মোঃ মনিরুল ইসলাম।

উপস্থিত ছিলেন ঝিকরগাছা উপজেলা নির্বাহী অফিসার জনাব আরাফাত রাহমান, ঝিকরগাছা উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান জনাব সেলিম রেজা, ঝিকরগাছা থানার অফিসার ইনচার্জ জনাব মোঃ আব্দুর রাজ্জাক, ঝিকরগাছা থানার এস আই জনাব দেবব্রত দাস, 
বি আর ডি বি যশোর জেলা অফিসার, ঝিকরগাছা বি আর ডি বি অফিসার জনাব কামরুজ্জামান।
ঝিকরগাছা উপজেলা যুবলীগ নেতা ইমামুল হাবীব জগলু, ইব্রাহীম খলিল, নাজমুল আকরাম রকি, জহিরুল ইসলাম, ঝিকরগাছা উপজেলা ছাত্রলীগ নেতা ইকরামুল করিম সৈকত, শিহাব উদ্দিন রাজ, মেরাজ হোসেন মিঠু, ইয়াসিন আরাফাত সজিব, জাহিদ, সোহান প্রমূখ।

নওগাঁয় ইয়াবা-ফেন্সিডিলসহ ৬ মাদক ব্যবসায়ী আটক

নওগাঁয় ইয়াবা-ফেন্সিডিলসহ ৬ মাদক ব্যবসায়ী আটক
ফেন্সিডল সহ  আটক- কপোতাক্ষ 
 


মোঃ ফিরোজ হোসাইন 
রাজশাহী ব্যুরো

নওগাঁয়, ৪৫০পিচ ইয়াবা ও ৮০ বোতল ফেনসিডিল  সহ ৬ মাদক ব্যবসায়ীকে 
আটক করেছে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ ৷ রবিবার রাতে সদর উপজেলার 
হাঁপানিয়া বাজার, মাম্দার ফেরিঘাট ও ধামুইরহাটের খয়েরবাড়ি ব্রিজ এলাকা থেকে তাদের আটক করা হয়৷ 
আটককৃতরা হলেন, নওগাাঁ সদর উপজেলার কালুপাড়া গ্রামের বাসিন্দা ইউসুব আলী (৩০), চকতারতা গ্রামের মোশারফ হোসেন (৫০), শেখপুরা পশ্চিমপাড়া গ্রামের রুস্তম আলী (৪০), রজাকপুর মধ্যেপাড়া গ্রামের আসাদুজ্জামান (৪২),ধামইরহাট উপজেলার খয়েরবাড়ি গ্রামের মেহেদী হাসান (১৯) ও জয়পুরহাট সদর উপজেলার সর্দারপাড়া গ্রামের আরিফুল ইসলাম (২০)। 

সোমবার দুপুরে ডিবি পুলিশ এর কার্যালয়ে প্রেস ব্রিফিংয়ে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রাকিবুল আকতার এসব তথ্য জানান। তিনি বলেন, পুলিশ সুপার প্রকৌশলী আব্দুল মান্নান মিয়ার নির্দেশে রোববার রাত সাড়ে ১০টার দিকে  পৃথক অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়।

এসময় সদর উপজেলা হাপানিয়া বাজার এলাকায় ইউসুব আলী ও মোশারফ হোসেন কাছ থেকে ৫০ পিছ ইয়াবা, মান্দা উপজেলার ফিরিঘাট এলাকায় রুস্তম আলী ও আসাদুজ্জামানের কাছ থেকে ৪০০ পিছ ইয়াবা এবং ধামইরহাট উপজেলার খয়েরবাড়ী ব্রিজ থেকে মেহেদী ও আরিফুল ইসলামের কাছ থেকে ৮০ বোতল ভারতীয় নিষিদ্ধ ফেন্সিডিল উদ্ধার করা হয়। তাদের বিরুদ্ধে মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে সংঘঠিত এলাকার থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। এবং ওইদিন বিকেলে তাদেও জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে। 

উদ্ধারকৃত ইয়াবা ও ফেন্সিডিলের মূল্যে ২ লাখ ১৫ হাজার বলে জানিয়েছেন স্থানীয পুলিশ কর্তৃপক্ষ। এসময় উপস্থিত ছিলেন,ডিবির ওসি সামসুদ্দিন, সদর মডেল থানার ওসি সোহরাওয়ীর্দি হোসেনসহ পুলিশের অন্যান্যে কর্মকতারা উপস্থিত ছিলেন

সিরাজগঞ্জে শিক্ষার্থীকে বলাৎকার মাদ্রাসার খাদেম আটক

সিরাজগঞ্জে শিক্ষার্থীকে বলাৎকার মাদ্রাসার খাদেম আটক



 মাসুদ রানা সিরাজগঞ্জ জেলাপ্রতিনিধি: সিরাজগঞ্জে একাধিক মাদ্রাসা শিক্ষার্থীকে বলাৎকারশিক্ষার্থীকে বলাৎকার করার অভিযোগে জাহাঙ্গীর আলম(৫৫) নামে মাদ্রাসার খাদেমকে আটক করেছে পুলিশ। ঘটনাটি ঘটেছে বাগবাটী ইউনিয়নের ফুলকোচা কবরস্থান দারুল উলুম হাফিজিয়া কওমী মাদ্রাসায়। সোমবার বিকালে তাকে ওই মাদ্রাসাথেকে আটক করা হয়।
পুলিশ ও এলাকাবাসীর বরাদ দিয়ে জানায়, কওমী মাদ্রাসার খাদেম মাদ্রাসায় কর্মরত থাকা অবস্থায় প্রতিদিন একাধিক শিশু শিক্ষার্থীদের বলাৎকার করে আসছিলো। এরই ধারাবাহিকতায় সোমবার দিবাগত রাতে মক্তব শ্রেণির আট বছরের শিশু ছাত্র কে আবারো বলাৎকার করলে বিষয়টি এলাকাবাসির মধ্যে ছড়িয়ে পরে। এতে ক্ষুদ্ধ হয়ে এলাকাবাসি তাকে আটক করে পুলিশে খবর দেয়। পরে পুলিশ তাকে থানা হেফাজতে নেয়।
স্থানীয়দের অভিযোগ, নওদাফুলকোচা গ্রামের আইয়ুব আলীর ছেলে কাওছার (৮)কে বলাৎকার করে খাদেম জাহাঙ্গীর আলম। বিষয়টি মাদ্রাসা শিক্ষার্থীদের মধ্যে ছড়িয়ে পড়লে স্থানীয়রা খাদেম জাহাঙ্গীর আলম খানকে আটক করে পুলিশকে খবর দেয়। 
বলাৎকারের শিকার মাদ্রাসার শিক্ষার্থী কাওছার (৮), আব্দুল্লাহ(৯) ও আব্দুস সবুর জানান, আমাদের হুজুর চলতি মাসে ১ জুলাই মাদ্রাসায় যোগ দেবার পর থেকে প্রতি রাতেই আমাদের বলাৎকার করে আসছিল। আমরা বাঁধা দিলেও নানামুখি ভয় দেখিয়ে আমাদের থামিয়ে রাখেন।
এবিষয়ে বাগবাটী ইউনিয়ন মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মমতা বেগম জানান, জাহাঙ্গীর আলম মাদ্রাসায় আসার পর থেকে শিশু ছাত্রদের সাথে অনৈতিক কাজ করে আসছিল। আমরা এলাকাবাসী চরিত্রহীন খাদেমের দৃষ্টান্তমুলত শাস্তির দাবি করছি। 
এ ঘটনার বিস্তারিত জানতে মাদ্রাসা ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আজিজুল ইসলাম ও সাধারণ সম্পাদক মঈন উদ্দিনকে মুঠোফোন ও সরজমিনে পাওয়া যায়নি।   
বলাৎকার এবং আটক বিষয়ে সিরাজগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হাফিজুল রহমান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, বিষয়টি স্পর্শকাতর তাই তদন্তসহ মামলার প্রস্তুতি চলছে।

নোয়াখালীতে ১৫ ঘন্টা পর নিখোঁজ শিশুর মরাদেহ উদ্ধার !

নোয়াখালীতে ১৫ ঘন্টা পর নিখোঁজ শিশুর মরাদেহ উদ্ধার  !


                               
মোঃরুবেল হোসাঈন শুভ নোয়াখালী প্রতিনিধি:নোয়াখালীর সুবর্ণচর উপজেলার চর আমানউল্যাহ পুর ইউনিয়নে সাঁকো থেকে আল আমিন (৪) নামে এক শিশু পানিতে পড়ে যায়, পিতার নাম আবদুর রহমান।তার কিছুক্ষণ পরে সুবর্ণচর ও মাইজদী ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরী দল ঐ স্থানে অভিযান চালায়।পরে যাওয়ার স্থান থেকে প্রায় আধা কিলোমিটার দূরে ভেসাল জাল থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়। 
                                 
সোমবার দুপুর ১২ টার দিকে বিষয়টি নিশ্চিত করে,সুবর্ণ চর উপজেলা ফায়ার সার্ভিসের অফিসার নূর নবী।স্থানীয় সূত্রে জানা যায়,তাদের বাড়ীর পাশ্ববর্তী খালের পাশে খেতের মধ্যে আবদুর রহমান একটি মাছের ঘেরে কাজ করছিল।রবিবার সকালে নিজের মাছের ঘেরে কাজ করছিল রহমান ।সকাল ১০ টিার দিকে তার মেয়ে ফারহানা আক্তার রিয়া (৭) ও ছেলে রহমানের কাজ দেখতে আসে।কিছুক্ষণ পর নাস্তা করার জন্য স্থানীয় দোকানে যায় রহমান।এর মধ্যে বৃষ্টি শুরু হলে আল আমিনকে নিয়ে খালের উপর থাকা গাছের সাকো পার হয়ে বাড়ী    যাচ্ছিল রিয়া।এসময় পা পিচ্ছলে তারা দুজনে খালের পানিতে পরে ডুবে যায়। সাতার দিয়ে রিয়া কিনারায় আসতে পারলে ও নিখোঁজ হয় আল আমিন।খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিস অভিযান চালিয়ে কোন সন্ধান পায়নি।পরে রাত দেড়টার দিকেেঐ খালের ভিতরে একটি ভেসাল জালে আল আমিনের লাশ উদ্ধার করে স্থানীয়রা।

কোটচাঁদপুর রিপোটার্স ইউনিটির সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত

কোটচাঁদপুর রিপোটার্স ইউনিটির  সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত




খোন্দকার আব্দুল্লাহ বাশার। 
 ( ঝিনাইদহ জেলা প্রতিনিধি) 




কোটচাঁদপুরে রিপোটার্স ইউনিটির  সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় সভা করেছে সাংবাদিকদের কল্যানে কাজ করে যাওয়া সংগঠন বাংলাদেশ সাংবাদিক জোট। সোমবার বিকাল ৪টার সময় কোটচাঁদপুর মেইন বাসষ্টান্ড তালসার সড়কে অবস্তিত কোটচাঁদপুর রিপোটার্স ইউনিটির অফিসে এ মতবিনিময় সভাটি অনুষ্ঠিত হয়।

মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ সাংবাদিক জোটের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী পরিষদের সভাপতি মশিউর রহমান। বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ সাংবাদিক জোটের সহ-সভাপতি জাহিদুল ইসলাম মামুন, দৈনিক দেশেরপত্রের খুলনা বিভাগীয় ব্যুরো প্রধান শেখ মনিরুল ইসলাম।

প্রধান অতিথি মশিউর রহমান সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময়কালে সাংবাদিকদের স্বার্থে কাজ করে যাওয়া বাংলাদেশ সাংবাদিক জোটের কর্মকান্ড, পরিকল্পনা ও সুবিধা তুলে ধরেন। এরমধ্যে উল্লেখিত সুবিধা গুলো হলো সদস্যদের ট্রেনিংয়ের ব্যবস্থা করা।

সদস্যদের সল্প খরচে কিংবা বিনা খরচে চিকিৎসার ব্যবস্থা গ্রহন করা, সাংবাদিক সন্তানদের জন্য সকল পর্যায়ের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ফুল ফ্রি কিংবা অর্ধেক খরচে অধ্যায়নের ব্যবস্থা করা ও মেধাবী সন্তানদের মাসিক বৃত্তি প্রদান, বিভাগ ভিত্তিক শ্রেষ্ট সাংবাদিকদের আর্থিক পুরস্কার প্রদান।

যেকোনো সদস্য মৃত্যু বরন করলে পরিবারকে কমপক্ষে ১লক্ষ টাকা আর্থিক সহায়তা প্রদান, পেশাগত দায়িত্ব পালনকালে অঙ্গহানি হলে ৩ লক্ষ টাকা অনুদান প্রদান করা, পেশাগত দায়িত্ব পালনে বাধাগ্রস্থ কিংবা অন্যায়ের শিকার হলে তাকে সম্মিলিতভাবে আইনগত সহায়তা করা, সাংবাদিকদের নবজাতক সন্তানকে এককালীন ২৫ হাজার টাকা আর্থিত সহায়তা প্রদানসহ বেশ কিছু সুবিধা তুলে ধরেন।

এ সময় সাংবাদিকদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- কোটচাঁদপুর রিপোটার্স ইউনিটির সভাপতি মামুনার রশীদ (সুমন), সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার জাহিদ (জামান), সহ কার্যনির্বাহী সদস্য,খোন্দকার  আব্দুল্লাহ বাশার,  শহিদুল ইসলাম, আব্দুস সোবাহান, সুশান্ত চক্রবর্তী, নারায়ণ ভট্রাচার্জ, সোহাগ,, আশাদুল ভূঁইয়া, সুব্রত চক্রবর্তী, আরিফ, ইউসুফ আলি, প্রমুখ।

নাটোরে দুই মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে র‌্যাব

নাটোরে দুই মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে র‌্যাব




রাজশাহী ব্যুরো
নাটোরের লালপুরে ৪৮৫পিচ ইয়াবাসহ নয়ন (২৬) ও সিয়াম ইসলাম সজল (২২) নামের দুই মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে র‌্যাব-৫, সিপিসি-২ নাটোর ক্যাম্পের সদস্যরা।

সোমবার (২০ জুলাই) দুপুুর ২টার দিকে উপজেলার গোপালপুর রেলগেট বাজার এলাকা থেকে ইয়াবাসহ হাতে নাতে তাদের আটক করা হয়।

আটককৃত নয়ন লালপুর উপজেলার গৌরীপুর এলাকার আব্দুুস সাত্তারের ছেলে ও সিয়াম ইসলাম বড়াইগ্রাম উপজেলার নাটবাড়িয়া এলাকার তসলিম উদ্দিনের ছেলে।

র‌্যাব-৫, সিপিসি-২, নাটোর ক্যাম্পের কোম্পানী কমান্ডার এএসপি রাজিবুল আহসান জানান,‘ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে দুপুরে র‌্যাব-৫এর একটি অভিযানিকদল উপজেলার গোপালপুর রেলগেট বাজার এলাকায় অভিযান চালিয়ে ৪৮৫ পিচ ইয়াবাসহ নয়ন ও সিয়াম ইসলাম সজল কে হাতেনাতে আটক করা হয়। এসময় তাদের কাছ থেকে তিনটি মোবাইল জব্দকরা হয়। উদ্ধারকৃত ইয়াবা বিক্রয়ের উদেশ্যে নিজ হেফাজতে রেখেছিলো বলে জনসম্মুুখে স্বিকার করে আটককৃত দুইজন। 

এ ব্যাপারে লালপুর থানার ওসি সেলিম রেজা জানান,  তাদের বিরুদ্ধে লালপুুর থানায় মাদক দ্রব্য  আইনে মমলা রুজু হয়েছে।

টাঙ্গাইল গালায় শহর রক্ষা বাধের ভাঙ্গন কবলিত এলাকা পরিদর্শন করেন ডিসি মোঃ আতাউল গনি

টাঙ্গাইল গালায় শহর রক্ষা বাধের ভাঙ্গন কবলিত এলাকা পরিদর্শন করেন ডিসি মোঃ আতাউল গনি



ইন্জি.তারিকুল ইসলাম, টাংগাইল  প্রতিনিধি:টাংগাইল সদর উপজেলা গালা ইউনিয়নে শহর রক্ষা বাধের ভাংগন কবলিত এলাকা পরিদর্শন করেন জেলা প্রশাসক মো.আতাউল গনি।

আজ সোমবার, ২০ জুলাই ২০২০ খ্রি.জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে ডিসি মহোদয়ের নেত্বতে বন্যায় ভাংগন কবলিত এলাকা পরিদর্শন পরিচালনা হয়।

এ সময় উপস্হিত ছিলেন টাংগাইল পুলিশ সুপার সঞ্জিত কুমার রায়, টাংগাইল  উপজেলা চেয়ারম্যান শাহজাহান আনছারী, টাংগাইল উপজেলা নির্বাহী অফিসার জনাব আতিকুল ইসলাম সহ আরও  অনেক কর্মকর্তা ও জনপ্রতিনিধি বৃন্দ।

এ্যাড. সাহারা খাতুন ছিলেন একজন সৎ-নির্ভীক ও সাহসী নেত্রী- মাইকেল

এ্যাড. সাহারা খাতুন ছিলেন একজন সৎ-নির্ভীক ও সাহসী নেত্রী- মাইকেল




মামুনুর রশিদ,দিনাজপুর প্রতিনিধি ॥ দিনাজপুর জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও জেলা ত্রাণ কমিটির সদস্য সচিব ফারুকুজ্জামান চৌধুরী মাইকেল বলেছেন, এ্যাডভোকেট সাহারা খাতুন ছিলেন একজন সৎ, নির্ভিক ও সাহসী নেত্রী। শুধু তাই না, তিনি ছিলেন আইনাঙ্গনের একজন বিচক্ষণ প্রতিভা। শেষ জীবনে সফলভাবে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় পরিচালনা করে প্রমাণ করেছেন, তিনি নিলোর্ভ একজন সাদা মনের রাজনীতিক। এমন প্রতিভা বা এমন নেতা-নেত্রী কালে কালে জন্ম নেয়। আবার কালে গর্ভে হারিয়ে যায়। এ্যাডভোকেট সাহারা খাতুন ছিলেন গণমানুষের পরম নেতা। সেজন্য তার এলাকার তিনি টানা ২ বার সংসদ সদস্যও নির্বাচিত হন। তিনি তার জীবন-যৌবন দিয়ে আওয়ামী লীগকে চার চার বার ক্ষমতায় এনেছেন জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে যখন অসাংবিধানিক তত্ত্বাবধায়ক সরকার সাবজেলে পুরেছিল। তখন আইনজীবীরা শেখ হাসিনার পক্ষে দাঁড়াতে সাহস করছিল না। সে সময় এ্যাডভোকেট সাহারা খাতুন সাহস নিয়ে শেখ হাসিনার পক্ষে দাঁড়ানোর বিরল দৃষ্টান্ত স্থাপন করেন। এমন হাজারো নজির রয়েছে আওয়ামী লীগ ও শেখ হাসিনার পক্ষে কাজ করার। শেখ হাসিনাও মানুষ চিনতে ভুল করেন না। তিনি কিছু বিশ্বস্ত মানুষকে সব সময় মূল্যায়ন করেছেন। এটি দূরদৃষ্টি নেতৃত্বের ফসল। আজ শেখ হাসিনার যে নেতৃত্ব প্রতিষ্ঠিত হয়েছে, উনি মৃত্যুর মিছিলে দাঁড়িয়ে বার বার জীবনের জয়গান গেয়েছেন, উনি ধ্বংসস্তুপের ভাগাড়ে দাঁড়িয়ে বার বার সৃষ্টির পতাকা উড়ান। এমনই বিশ্বস্ত মানুষ ছিলেন প্রয়াত নেত্রী এ্যাড. সাহারা খাতুন। তাকে হারিয়ে আমরা শোকে মুহ্যমান। তবে এ শোককে শক্তিতে পরিণত করে তার রেখে যাওয়া কাজকে চুড়ান্ত পর্যায়ে নিয়ে যেতে আমরা বদ্ধপরিকর।
২০ জুলাই সোমবার বিকালে আইনজীবী সমিতি ভবনে প্রয়াত নেত্রী এ্যাডভোকেট সাহারা খাতুনের মৃত্যুতে আয়োজিত স্মরণ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি উপরোক্ত কথাগুলো বলেন। বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদ দিনাজপুর জেলা শাখার আয়োজনে এ স্মরণ সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন, হাইকোর্ট ডিভিশনের এ্যাডভোকেট মোঃ হযরত আলী বেলাল, বাংলাদেশ সুপ্রীম কোর্টে এ্যাডভোকেট শহীদুল ইসলাম শাহীন। মুখ্য আলোচক ছিলেন দিনাজপুর জেলা ও দায়রা জজ আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর এ্যাড. রবিউল ইসলাম রবি। জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ও জেলা ও দায়রা জজ আদালতের অতিরিক্ত পিপি হাজী মোঃ সাইফুল ইসলাম এ্যাডভোকেটের সভাপতিত্বে এবং স্পেশাল পিপি শামসুর রহমান পারভেজের সঞ্চালনায় সভায় উপস্থিত ছিলেন, এ্যাড. খন্দকার মাহতাব উদ্দীন, এ্যাড. অনিমেষ চন্দ্র রায়, এ্যাড. রনজিত সরকার, জেলা তাঁতী লীগের আহবায়ক সাবেক ছাত্রলীগ নেতা জাহাঙ্গীর আলম আলাল, জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম ইমতিয়াজ ইনান প্রমূখ।

অবসরে ছাদ বাগানেই সময় কাটে ব্যাংক কর্মকর্তার

অবসরে ছাদ বাগানেই সময় কাটে ব্যাংক কর্মকর্তার




মামুনুর রশিদ,দিনাজপুর প্রতিনিধি : স্বামী-স্ত্রী দুজনেই সরকারি চাকরি করেন। একজন সরকারি একটি ব্যাংকের ম্যানেজার আরেকজন সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়লের শিক্ষিকা। এক ছেলে নিয়ে তিনজনের পরিবার দিনাজপুর শহরের লালবাগ এলাকার আজাদ নয়ন ও নাজমা ইয়াসমিন মুক্তার। ছেলে পড়াশোনার জন্য থাকে বাইরে। স্বামী-স্ত্রী দুজনেই চাকরির পাশাপাশি অবসর সময় পার করেন এই ছাদ বাগান করে।দীর্ঘ আঠারো বছরের ছাদ বাগানে ১৩২ প্রকারের ফুল, ফলজ ও ওষুধি গাছ আছে। এই গাছ গুলো ছাদে আসার ভিন্ন ভিন্ন কারণও আছে। বিশেষ কোন দিনে যেমন, স্বামীর জন্ম দিনে স্ত্রী গাছ উপহার দেন। আবার স্ত্রীর জন্ম দিনে স্বামীও গাছ উপহার দেন। শুধু তাই নয়, সংসার জীবনের প্রতিটি বিবাহবার্ষিকীতে স্থানীয় নার্সারিতে গিয়ে দুজন দুজনকে গাছ উপহার দিয়ে থাকেন। এভাবেই এখন ব্যাংক কর্মকর্তার আড়াই হাজার বর্গ ফুটের বাড়ির ছাদ বাগানটিতে গড়ে উঠেছে ১৩২ প্রকারের গাছের বিশাল একটি বাগান। মুক্ত এই ছাদ বাগানটিতে ফুলে ফুলে ঘুরে বেরাচ্ছে প্রজাপ্রতিরাও।গাছ গুলোর যতœও করেন নিজের সন্তানের মত। প্রতিদিন স্বামী-স্ত্রী অফিস থেকে ফিরে আগে ছাদে গিয়ে গাছের খোঁজ খবর নেন। বছরের প্রতিটি সময়ে নিজের ছাদ বাগানের গাছ থেকেই দেশি বিদেশী বিভিন্ন ধরণের সুস্বাদু ফল খেয়ে থাকেন। সরেজমিন গিয়ে দেখা যায়, ব্যাংক কর্মকর্তা আজাদ নয়ন অফিস থেকে ফিরে গায়ের কাপড় না খুলেই গেছেন ছাদ বাগানে। সেখানে কোন গাছের কি সমস্যা, কোনটাতে পানি দিতে হবে আর কোনটাতে নিরানী করতে হবে এগুলো নিয়েই ব্যস্ত সময় পার করছেন। তবে দৃষ্টিনন্দন এই ছাদ বাগানটির অনেক গাছেই ঝুলে আছে দেশি বিদেশী হরেক রকমের পাকা, আধাপাকা কিংবা কাচা ফল। গাছে ঝুলে আছে ড্রাগন ফল, জাম্বুরা, কয়েক প্রকার কমলা, মালটা, বাতাবি লেবু, আঙ্গুর, কয়েক ধরণের পেয়ারা, আম, ডালিম, করমচা, তেতুল, মিষ্টি তেতুল, অড়বড়াই, পানি জাম, সাদা জাম, সফেদা, আমড়া, শরিফা মেওয়া, আতা ফলসহ অসংখ্য ফল। আছে নাইট কুইনসহ অনেক প্রকার ফুলের গাছও। বিদেশী গাছের মধ্যে রয়েছে এ্যাভোকেডো, রাম্বুতান, করোসল, বরোরা, জয়তুন, ভিয়েতনামের বারমাসি কাঠাল, আপেল, থাই বারমাসি বাদামি লেবু, থাই কদবেল, কালো আঙ্গুর, সৌদি আরবের খেজুর গাছ, আলু বখরাসহ বিভিন্ন প্রজাতি।গাছের যেকোন সমস্যায় তিনি কৃষি কর্মকর্তাদের পরামর্শ নিয়ে থাকেন। এক্ষেত্রে কৃষি কর্মকর্তাদের সহযোগিতার কথাও বলেন তিনি।ব্যাংক কর্মকর্তা আজাদ নয়ন বলেন, ‘আমার ছাদ বাগান করার বয়স আঠারো বছরের বেশি। আমার ছাদ বাগানে ১৩২ প্রজাতির গাছ আছে। এসব গাছ তেলের ড্রাম কিংবা বড় বড় টপে করে রাখা হয়েছে। আমার জীবনের আমি যতবার বিদেশে গিয়েছি সেখানে থেকে গাছ নিয়ে এসেছি। ছাদের কোন গাছে কীটনাশক ব্যবহার করি না। প্রতিটি গাছে জৈব সার ব্যবহার করি। আমাদের চাকরির পাশাপাশি অবসর সময়টা কাটে এই ছাদ বাগানে। ছাদেই শুধু নয়, আমার স্ত্রী ঘরের বারান্দায় প্রায় শতাধিক প্রজাতির ছোট ছোট টপে গাছ লাগিয়েছেন। আমার দেখাদেখি এখানের অনেক বাড়িতেই এখন ছাদ বাগান হয়েছে। আমার কাছে এখন অনেকেই ছাদ বাগানের বিষয়ে পরামর্শ নিচ্ছেন।’তবে ছাদ বাগানের জনপ্রিয়তা দিনাজপুরে অনেক বেড়েছে। জেলা প্রশাসকও ছাদ বাগানের বিষয়ে অনেক আগ্রহী। নিজেও বিভিন্ন অফিসের ছাদে গাছ লাগিয়েছেন। এ বিষয়ে দিনাজপুরের জেলা প্রশাসক মো. মাহমুদুল আলম বলেন, ‘ছাদ বাগান বর্তমানে জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। যারা ছাদ বাগান করতে আগ্রহী আমরা তাদের বিভিন্নভাবে সহযোগিতাও করছি। জেলার প্রতিটি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাদের ছাদ বাগান করার পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে। আমরাও পুরো জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের যেখানে গাছ বা বাগান করার মত জায়গা আছে সেগুলোতে বাগান করছি।’

দিনাজপুরে চাউল কল র্নিমান কার্যক্রম বন্ধের দাবীতে এলাকাবাসীর মানববন্ধন

দিনাজপুরে চাউল কল র্নিমান কার্যক্রম বন্ধের দাবীতে এলাকাবাসীর মানববন্ধন




মামুনুর রশিদ, দিনাজপুর প্রতিনিধিঃ  দিনাজপুর সদর উপজেলার ৬ নং আউলিয়াপুর ইউনিয়নের আউলিয়াপুর গ্রামের ঘনবসতী এলাকায় পরিবেশগত ছাড়পত্র ছাড়াই অটো রাইস মিল তৈরি করায় পরিবেশ সুরক্ষার দাবিতে এবং আবাসিক এলাকায় ইন্ডাষ্ট্রিজ তৈরি না করার দাবিতে ক্ষতিগ্রস্থ এলাকাবাসি ২০ জুলাই সোমবার পুলহাট রুপম মোড় এলাকায় মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করে।
সদর উপজেলার আউলিয়াপুর গ্রামের রূপন মোড়ে ক্ষতিগ্রস্থ কয়েকশত পরিবার পরিবেশ সুরক্ষার দাবিতে প্রদর্শিত ব্যানার, ফেস্টুন নিয়ে মানববন্ধন করে। এসময় ফেস্টুনে "আবাসিক এলাকায় ইন্ডাষ্ট্রিজ চাইনা", "গ্রামে অবৈধ স্থাপনা বন্ধ কর", "পরিবেশ সুরক্ষা চাই" ইত্যাদি লেখা ফেস্টুন প্রদর্শিত হয়। এসময় মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন স্থানীয় পরিবেশ সুরক্ষা কমিটির মূখপাত্র মোসাদ্দেক হোসেন। মোসাদ্দেক জানান, এভাবে একের পর এক চালকল তৈরি হতে হতে আজ বাড়ির সীমানা ঘেষে তৈরি হতে শুরু করেছে। এলাকাটিতে ছাই, ধুলোবালির কারণে দিনাজপুরের ঐতিহ্যবাহী লিচু উৎপাদন হ্রাস পাচ্ছে। নতুন করে আবাসিক এলাকায় চালকল বসলে বসবাসের অযোগ্যতে পরিণত হবে এলাকাটি। এসময় মানববন্ধনে একাত্মতা ঘোষণা করে ঐতিহ্যবাহী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কেবিএম কলেজ। 
কেবিএম কলেজের অধ্যক্ষ জানান, আবাসিক এলাকায় চালকল তৈরি হওয়ায় কলেজে ক্লাশের পরিবেশ বিঘিœত হচ্ছে। নানা সময় শিক্ষার্থীরা লিখিত অভিযোগ করে। ক্যাম্পাসে ছাই কণায় একাকার হয়ে থাকে। আমরা প্রতিকার চেয়ে বিভিন্ন দপ্তরে চিঠি দিয়েছি কিন্তু কোন প্রতিকার পাইনি। এ আন্দোলনের সঙ্গে আমরা একাত্মতা ঘোষণা করছি।
স্থানীয় গ্রামবাসী আব্দুস সাত্তার জানান, নতুন করে চালকল তৈরি হলে আশাপাশে বসবাস করা কয়েক হাজার মানুষের বসবাস অনুপোযগী হয়ে পড়বে। পরিবেশের পাশাপাশি ক্ষতি হবে মানবদেহে। বায়ুদূষণের কারণে শ্বাষ কষ্ট জনিত রোগের আশঙ্কা করছি আমরা।
ইতিপূর্বে জেলা প্রশাসক বরাবর এলাকাবাসীর পক্ষে লিখিত আবেদন করা হলে জেলা প্রশাসক পরিবেশ অধিদপ্তরকে তদন্তের নির্দেশ দেন। পরিবেশ অধিদপ্তর দিনাজপুরের সহকারী পরিচালক তদন্তের যে প্রতিবেদন জমাদেন সেখানে উল্লেখ করেন অটো রাইচ মিলটি তৈরির পূর্বে কোন পরিবেশগত ছাড়পত্র নেয়া হয়নি। রাইচ মিলটি পরিচালনা করা হলে ছাই, ধুলিকণা , কালোধোঁয়ায় পরিবেশ ক্ষতিগ্রস্থ ও জীবনযাপনে অসুবিধার সৃষ্টি হবে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেন। এরই পরিপেক্ষিতে জেলা প্রশাসক মোঃ মাহমুদুল আলম ১৮ সেপ্টম্বর ২০১৯ কার্যক্রমটি স্থগিতাদেশ দিয়ে একটি চিঠি পাঠান। অন্যথায় আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে মর্মে চিঠিতে জানানো হয়। লকডাউন চলাকালিন সময়ে চালকলটির কাজ সম্পন্ন করে কর্তৃপক্ষ। এলাকাবাসী সমস্যার কথা জানিয়ে পুনঃরায় জেলা প্রশাসক বরাবর আবেদন করে। প্রতিকার চেয়ে এলাকাবাসী মানববন্ধন কর্মসূচি দিয়েছে বলে আন্দোলনকারীরা জানান।
অটো রাইচ মিলটির মালিক সদরের মাশিমপুর গ্রামের বাসিন্দা মোঃ অহিদুল ইসলাম বলেন, আমার এই নির্মাণাধীন চালকলটি অধুনিকায়ন এই মিল দ্বারা কোন প্রকার বায়ু এবং পানি দূষন হবেনা। তিনি আরও বলেন এই মিলের সাথে পানির কোন সম্পর্কই তাই পানি দুষনের কোন প্রশ্নই উঠতে পারেনা। আমার নির্মাণাধীন মিলটির পশ্চিম ও ধক্ষিণে ৫টি মিল রয়েছে উক্ত মিল গুলো দ্বারা প্রতিনিয়ত বায়ু ও পানি দুষন হচ্ছে সে বিষয় কেউ কথা বলছেনা।

ছোট যমুনা ও আত্রাই নদীর পানি কমতে শুরু করেছে বাড়ছে দুর্ভোগ

ছোট যমুনা ও আত্রাই নদীর পানি কমতে শুরু করেছে বাড়ছে দুর্ভোগ





মোঃ ফিরোজ হোসাইন 
রাজশাহী ব্যুরো

 অতিবৃষ্টি ও উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলের পানি বৃদ্ধি পাওয়ার পর সৃষ্ট বন্যার পর দুইদিন ধরে ধীরগতিতে কমতে শুরু করেছে ছোট যমুনা ও আত্রাই নদীর পানি তবে এখনও বিপদ কাটছেনা ভেঙে যাওয়া বাঁধার জন্য বিল এলাকার জনসাধারণের। ফলে নওগাঁ  জেলার আত্রাই  উপজেলার সার্বিক বন্যা পরিস্থিতির কিছু  উন্নতি হলেও নদ-নদীর অববাহিকার উপজেলার ৮টি ইউনিয়নের সাহাগোলা, আহসানগঞ্জ, কালিকাপুর, হাটকালুপাড়া, পাঁচুপুর, বিশা ইউনিয়নের বানভাসি পানিবন্দি ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে দুর্ভোগে পড়েছে প্রায়ই লক্ষাদিক মানুষ।

পানিবন্দি  মানুষদের বাড়ির ভিতর পানির স্রোত, ঘরের ভিতর থৈ-থৈ পানি, মেঝেতে গর্ত, তার মধ্যেই আড়ার ওপর মাচা পেতে জিনিসপত্র রেখে ভয়, আতংক, দুশ্চিন্তায়, শুকনো খাবার, বিশুদ্ধ পানি, শিশু খাদ্য, ওষুধপাতির সংকটে, পয়ঃনিস্কাশনের চরম সমস্যায় মানবেতর জীবন যাপন করছে তারা। অনেকেই পশু-পাখি, গরু-ছাগল নিয়ে রাস্তার উঁচু স্থানে পলিথিন টানিয়ে ঘর তৈরি করে থাকছে। 
আবার কেউ কেউ অবস্থান নিয়েছে স্কুল কলেজে।

বেশ কয়েকটি ইউনিয়ন ঘুরে  এলাকার পানিবন্দি অনেক মানুষ অভিযোগ করে বলেন, ‘আমরা প্রায় প্রতি বছরই বন্যায় পানিতে ভাসি অথচ আমাদের মেম্বার চেয়ারম্যান  তেমন কোন কিছুই দেয় না।

তবে ইতিমধ্যে প্রতিনিয়ত উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো.ছানাউল ইসলামের নির্দেশে উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় ত্রাণ সামগ্রী হিসেবে শুকনো খাবার চাল, চিড়া, মুড়ি, গুড়, শিশু খাদ্য বিতরণ করা হচ্ছে।

শৈলকুপায় সড়ক দুর্ঘটনায় চায়ের দোকানদারে মৃত্যু"

শৈলকুপায় সড়ক  দুর্ঘটনায় চায়ের দোকানদারে মৃত্যু"





সম্রাট হোসেন, শৈলকুপা (ঝিনাইদাহ) সংবাদদাতাঃ


অঙ্কুর  নার্সারির সামনে চায়ের দোকানদার "কাশেম ভাই " মোটর সাইকেল  অ্যাক্সিডেন্টে মারা গেছেন। "ইন্না লিল্লাহে ওয়া ইন্না ইলাহি রাজিউন"।খুব প্রিয় এবং আমাদের সকলের ভালোবাসার একজন বড় ভাই,।  গড়াগঞ্জ সহ আশ পাশের সকল মানুষের অত্যন্ত প্রিয় কাশেম ভাই,সরল, মিশুক হাসিমাখা মুখের আমাদের প্রিয় কাশেম ভাইয়ের অকালমৃত্যুর তার পরিবার যেন শোক কাটিয়ে উঠতে পারে। এলাকার তরুণ যুবক, যেসব ভাই বন্ধুরা এলাকার বাহিরে থাকে সবাই ঈদের ছুটিতে এসে একবার হলেও কাশেম ভাইয়ের দোকানে আড্ডা দেই, খুব কষ্ট লাগছে ভাইয়ের জন্য, মহান আল্লাহ তাকে জান্নাতুল ফিরদাউস দান করুন আমীন। গাড়াগঞ্জ - কুষ্টিয়া সড়কের বড়দাহ নতুন ব্রিজ সংলগ্ন  ট্রাক ও মোটরসাইকেল মুখো মুখি সংর্ঘষে এই দুর্ঘটনা ঘটে। উল্লেখ্য একই জায়গা প্রায় ৪ মাস আগে গাড়াগঞ্জ মিঞা জিন্নাহ আলম ডিগ্রি কলেজের সোহাগ নামের একজন  মারা যায়। এক স্থানে দুইটা ব্রিজে ও দুইটা  রাস্তা, গাড়ি কোনদিকে যাবে বুঝতে পারে না সাধরণ মানুষ। তার উপর ব্রিজের দুই পাশে রয়েছে মহাসড়কে উঠার চারটি রাস্তা। বড়দাহ ও রানিনগরের  দুইটা এবং মহেশপুর গ্রামের দুইটা রাস্তা। এই রাস্তা গুলো থেকে একবারেই মহসড়কে কোন বাধা ছাড়া উঠতে হয়। এই জন্য এক কথাই এই স্থানটিতে প্রতিনিয়ত দূর্ঘনটা ও প্রাণ হানি ঘটেই চলেছে। এরকম ঝিনাইদহ - কুষ্টিয়া  মহাসড়কে ৪-৫ টি ব্রিজে একই অবস্থায় মৃত্যু ফাঁদ তৈরি হইয়ে আছে। যেকোন একটি ব্রিজ অফ করে দিলে ভাল হয়, নতুন ব্রিজ গুলাতে গাড়ি উঠতেই চালক গাড়ির স্পিড দ্বিগুণ করে ফেলে, এই ব্যাপারে হাইওয়ে পুলিশের হস্তক্ষেপ কামনা করেছে এলাকা বাসি।

যশোরে জামাইয়ের মৃত্যুর সংবাদ শুনে শশুরের মৃত্যু

যশোরে জামাইয়ের মৃত্যুর সংবাদ শুনে শশুরের মৃত্যু



সুমন হোসেন, যশোর প্রতিনিধি।। 
জামাতার মৃত্যুসংবাদ শুনে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা গেলেন শ্বশুর। রোববার রাতে এই মর্মান্তিক ঘটনা ঘটেছে। জামাতা আব্দুল্লাহ আল মামুন (৩০) যশোর শহরের ঝুমঝুমপুরে স্কুলপাড়ার শহর আলীর ছেলে এবং শ্বশুর আব্দুল খালেক (৭০) সদর উপজেলার সুলতানপুর পূর্বপাড়ার বাসিন্দা। মামুন যশোর শহরের ‘চৌধুরী গোল্ড’ নামে একটি সোনার দোকানে চাকরি করতেন।মামুনের বন্ধুরা জানান, শ্বশুর আব্দুল খালেক দীর্ঘদিন নানা রোগে আক্রান্ত হয়ে বাড়িতে চিকিৎসাধীন ছিলেন। এর মধ্যে তার শ্বাসকষ্ট ও অ্যাজমা বেড়ে গেলে রোববার (১৯ জুলাই) রাত আটটার দিকে জামাই আব্দুল্লাহ আল মামুন অক্সিজেনের সিলিন্ডার নিয়ে শ্বশুরবাড়িতে যাচ্ছিলেন। যশোর-নড়াইল রোডের নীলগঞ্জ ব্রিজ পার হওয়ার সময় একটি ট্রাক তাকে ধাক্কা দেয়। এতে দুর্ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়।পুলিশ মামুনের লাশ উদ্ধার করে যশোর জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠায়। শ্বশুরের জন্য অক্সিজেনের সিলিন্ডার নেওয়ার পথে মামুনের মৃত্যুর সংবাদ পৌছুলে আব্দুল খালেক হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান।যশোর সদর উপজেলার ফতেপুর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আনজুরুল ইসলাম খোকন হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে বৃদ্ধ আব্দুল খালেক মারা গেছেন বলে নিশ্চিত করেছেন।

মাধবপুরে মুক্তিযোদ্ধার পুত্রবধূকে ধর্ষণে ব্যর্থ হয়ে কুপিয়ে জখম।

মাধবপুরে মুক্তিযোদ্ধার পুত্রবধূকে ধর্ষণে ব্যর্থ হয়ে কুপিয়ে জখম।





লিটন পাঠান হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি

হবিগঞ্জের মাধবপুরে মুক্তিযোদ্ধার পুত্রবধূকে ধর্ষণে ব্যর্থ হয়ে কুপিয়ে জখম করেছে এক বখাটে। এ ব্যাপারে মাধবপুর থানায় মামলা দায়ের করেছেন হামলার শিকার গৃহবধূ মোছা. জাহানারা বেগম। তিনি উপজেলার দয়ারামপুর গ্রামের মো. সিরাজ মিয়ার স্ত্রী ও মৃত বীর মুক্তিযোদ্ধা ইসনব আলীর পুত্রবধূ।

মামলায় উল্লেখ্য করা হয় জাহানারা বেগমের স্বামী জীবিকার তাগিদে প্রায় সময়ই বাহিরে থাকেন। এ সুযোগে একই গ্রামের মৃত আব্দুল লতিফের ছেলে লিটন মিয়া তাদের বাড়িতে আসা যাওয়া করতেন। এক পর্যায়ে তিনি জাহানারা বেগমকে কুপ্রস্তাব দিতে শুরু করেন। প্রতিনিয়ত কুপ্রস্তাবের কারণে জাহানার বেগম লিটন মিয়াকে তার বাড়িতে আসতে নিষেধ করে দেন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে লিটন মিয়া শনিবার দিবাগত রাত সাড়ে ১০টার দিকে জাহানারা বেগমকে ঘরে একা পেয়ে ঝাপটে ধরেন।

এ সময় লিটন মিয়া জাহানার বেগমের মুখ চেপে ধর্ষণের চেষ্টা করেন। কিন্তু এতে তিনি ব্যার্থ হয়ে ধারালো অস্ত্র দিয়ে জাহানারা বেগমকে মাথায় কুপিয়ে জখম করেন। এক পর্যায়ে তিনি চিৎকার শুরু করলে প্রতিবেশিরা এগিয়ে আসলে দূর্বৃত্বরা পালিয়ে যায়। স্থানীয় লোকজন জাহানারাকে উদ্ধার করে মাধবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে ভর্তি করেন। এ ঘটনায় রবিবার রাত ১২টার দিকে জাহানারা বেগম বাদি হয়ে মাধবপুর থানায় মামলা দায়ের করেন।

ইসলামিক ফাউন্ডেশনের শিক্ষকরা ৭ মাস যাবত বেতন পাচ্ছে না,সংবাদ সম্মেলন

ইসলামিক ফাউন্ডেশনের শিক্ষকরা ৭ মাস যাবত বেতন পাচ্ছে না,সংবাদ সম্মেলন




স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২০ জুলাই, ২০২০, ২:৪৭ 
প্রাণঘাতী করোনা মহামারীতে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মসজিদভিত্তিক শিশু ও গণশিক্ষা প্রকল্পের অধীনে সারাদেশের ১ হাজার ১০টি দারুল আরকাম ইবতেদায়ী মাদরাসার শিক্ষক শিক্ষিকারা বিগত ৭ মাস যাবত বেতন ভাতা পাচ্ছে না। এসব শিক্ষকরা পরিবার পরিজন নিয়ে অনাহার অর্ধাহারে দিন কাটাচ্ছেন। আসন্ন ঈদুল আজহার আগেই এসব দুর্দশাগ্রস্ত শিক্ষকদের বেতন ও ঈদ বোনাস পরিশোধ করার জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আশু হস্তক্ষেপ কামনা করা হয়েছে। আজ সোমবার জাতীয় প্রেসক্লাবে দারুল আরকাম শিক্ষক কল্যাণ সমিতি আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে নেতৃবৃন্দ এ হস্তক্ষেপ কামনা করেন। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন শিক্ষক কল্যাণ সমিতির সভাপতি মুফতি জয়নুল আবেদীন। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে ইফা বোর্ড অব গভর্নরস আলহাজ মিছবাহুর রহমান চৌধুরী উপস্থিত ছিলেন। তিনি দারুল আরকাম ইবতেদায়ী মাদরাসা প্রকল্প অনুমোদনের জোর দাবি জানান। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অভিপ্রায় ২০১৮ সালে দারুল আরকাম ইবতেদায়ী মাদরাসার কার্যক্রম চালু করা হয়েছে। এসব মাদরাসার কার্যক্রম চালু করা না হলে সারাদেশে হাজার হাজার ছাত্র ছাত্রীরা দ্বীনি শিক্ষার সুযোগ থেকে বঞ্চিত হবে। তিনি দারুল আরকাম ইবতেদায়ী মাদরাসার শিক্ষকদের বকেয়া বেতন বোনাস ঈদের আগেই পরিশোধের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেন। সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, সংগঠনের সিনিয়র সহ সভাপতি মুফতি নাজমূল হুদা, সহসভাপতি মুফতি মমিনুল হাসান, মহাসচিব হাফেজ মাওলানা জাকির হোসেন গোপালগঞ্জী, অর্থ সম্পাদক মাওলানা মনিরুজ্জামান, মুফতি আলমাস, মাওলানা ওসমান গণি , মাওলানা রাশেদুল আলম , হাফেজ মাওলানা আব্দুস সাত্তার ও মুফতি আহমদ কবীর। 

সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, করোনা মহামারীতে এসব অসহায় শিক্ষকরা কারো কাছে হাত পাততেও পারছে না। ধার দেনা করে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যসামগ্রি কিনতে হিমশিম খাচ্ছে ইফার শিক্ষকরা। অনাহারী সন্তান ও বৃদ্ধ মা বাবার সামনে ঈদের দিন মুখ দেখানো সম্ভব নয়; তাই ঈদের পূর্বে বেতন বোনাস না পেলে ঈদুল আজহার দিন শিক্ষকরা জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে অবস্থান কর্মসূচি পালন করতে বাধ্য হবে।
মহামারীর মধ্যে মানুষ যখন ঘর থেকে বের হতে ভয় পাচ্ছে ঠিক সেই মুহুর্তে নিরুপায় হয়ে আমরা এই সংবাদ সম্মেলন করতে বাধ্য হচ্ছি।
সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে সালে ইসলামিক ফাউন্ডেশন মসজিদভিত্তিক শিশু ও গণশিক্ষা প্রকল্পের সঙ্গে দেশের প্রতিটি উপজেলায় ২টি করে এবং ঢাকা ও অন্যান্য মহানগর মিলিয়ে মোট ১০১০টি দারুল আরকাম ইবতেদায়ী মাদরাসা প্রতিষ্ঠা করা হয়। এসব মাদরাসার শিক্ষকদের অক্লান্ত প্রচেষ্টায় ও জনগণের সহযোগিতায় সমগ্র দেশে মাদরাসা ভবন প্রতিষ্ঠা করা হয়।
পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিয়ে কওমী মাদরাসা থেকে উত্তীর্ণ ১০১০ জন শিক্ষক এবং আলীয়া মাদরাসা থেকে উত্তীর্ণ ১০১০ জন শিক্ষকসহ মোট ২০২০ জন শিক্ষক নিয়োগ দেয়া হয়। এছাড়া জেনারেল শিক্ষক নিয়োগের জন্য ১০১০ জন ও কওমী এবং আলীয়া থেকে আরো ১০১০জন করে সর্বমোট ৩০৩০জনের একইভাবে পরীক্ষা নিয়ে ভাইবা সমাপ্ত করে এখনও নিয়োগের অপেক্ষায় আছেন। ২০১৮ শিক্ষাবর্ষ থেকে কওমী ও আলীয়া নেসাবের মোট ২০২০জন শিক্ষক সফলতার সহিত তাঁদের দায়িত্ব পালন করে আসছে।
করোনা ভাইরাসের কারণে সরকারি নির্দেশে সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে দারুল আরকাম ইবতেদায়ী মাদরাসাও বন্ধ রয়েছে। 

গত ৬ জুলাই এসব শিক্ষকদের বেতন ভাতার দাবিতে তেজগাঁওস্থ প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে লিখিত আবেদন পেশ করা হয়েছে। ইসলামিক ফাউন্ডেশন দারুল আরকাম মাদরাসার জন্য আলাদা প্রকল্প তৈরী করেছে। নেতৃবৃন্দ আলাদা প্রকল্প দ্রুত বাস্তবায়নের জন্য সরকারের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেন। 

উল্লেখ্য, আলহাজ মিছবাহুর রহমান চৌধুরীর অনুরোধে শিক্ষক নেতৃবৃন্দ ঈদের দিন জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে অবস্থান কর্মসূচি প্রত্যাহার করেন। তিনি শিগগিরই প্রধানমন্ত্রীর সাথে দেখা করে এসব শিক্ষকদের বকেয়া বেতন ভাতা পরিশোধের জন্য বাস্তবমুখী উদ্যোগ নেয়ার প্রতিশ্রুতি দেন।

কিশোরগঞ্জে কেশবা ফাজিল মাদ্রাসা ভবন নির্মাণে অনিয়ম

কিশোরগঞ্জে কেশবা ফাজিল মাদ্রাসা ভবন নির্মাণে অনিয়ম




মো:লাতিফুল আজম
কিশোরগঞ্জ নীলফামারী প্রতিনিধি:

নীলফামারীর কিশোরগঞ্জ উপজেলার কেশবা ফাজিল মাদ্রাসার ভবন নির্মাণে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। তদারকির অভাবে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান ভবনের গ্রেট বিম ঢালাই ও ছাদ ঢালাইসহ অন্যন্য কাজে নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহার করেছেন। ফলে ভবনটির ছাদ ঢালাইয়ের একদিনের মাথায় সমস্ত খোয়া বের হয়ে পড়েছে। এছাড়াও প্রকল্প এলাকায় কাজের বিবরন ও তথ্য সংবলিত সাইনবোর্ড লাগানোর কথা থাকলেও তা লাগানো হয়নি।

এলাকাবাসীর অভিযোগ ভবনটির গ্রেটবিম ঢালাইয়ে নিম্নমানের সামগ্রী এবং রট কম দেওয়ায় গ্রেট বিম হেলে পড়েছিল। পরে বিষয়টি তদারকি কর্মকতার্কে জানালে তিনি এসে তড়িঘরি করে গ্রেট বিম ভেঙে ফেলে নতুন করে গ্রেট বিম তৈরী করে নেন। তবে নীলফামারী শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের উপসহকারী প্রকৌশলী এবং ভবন নির্মাণর তদারকি কর্মকর্তার লতিফুর রহমান লিখন বলেন একটি কলামের এ্যালাইনম্যান্ট ঠিক না থাকার কারনে সেটি ভেঙে ফেলে নতুন করে কলাম নির্মাণ করা হয়েছে।

জানা গেছে, কেশবা ফাজিল মাদ্রাসাটির চারতলা ভবনের নির্মাণ কাজ চলমান রয়েছে। গোটা উপজেলার সকল মাদ্রসার ছাত্রছাত্রীদের বিভিন্ন পরীক্ষা কেন্দ্র হিসাবে এই মাদ্রাসাটি ব্যবহার করা হয়। মাদ্রাসাটিতে পরীক্ষার্থীর সংখ্যা বেশি হওয়ার কারণে এবং দ্বিতল কিংবা চারতলা বিশিষ্ট কোন ভবন না থাকায় শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তর থেকে চারতলা একটি ভবন নিমার্ণের জন্য তিন কোটি ২৬ লাখ টাকা বরাদ্দ ধরে টেন্ডার আহবান করা হয়। টেন্ডারে কাজটি পান দিনাজপুরের মা এন্টারপ্রাইজ নামে একটি ঠিকাদরি প্রতিষ্ঠান। কিন্তু ওই ঠিকাদারের বদলে কাজ করছেন দিনাজপুর জেলার বীরগঞ্জ উপজেলার মেসার্স শাহিন এন্টার প্রাইজ।

গত শুক্রবার ১৭ ই জুলাই সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়। অফিস বন্ধের দিন চারতলা ভবনের প্রথম তলার ছাদ ঢালাইয়ের কাজ চলছে। ঢালাইয়ে সেলেকশন বালু, পিকেট ইটের খোয়া এবং মানসম্নত সিমেন্ট দিয়ে ঢালাই করার কথা থাকলে ঠিকাদার কোন কিছুর তোয়াক্কা না করে। পাউডার যুক্ত কমদামের সিমেন্ট, লোকাল বালু, এবং নিম্নমানের খোয়া দিয়ে ঢালাই কাজ করছেন।

শনিবার সকালে গিয়ে দেখা যায়, নিম্নমানের সামগ্রী দিয়ে ঢালাইয়ের কারণে ইটের খোয়া বের হয়ে গেছে। সাংবাদিক দেখে ঠিকাদারের লোকজন তড়িঘরি করে ঢালাইয়ের সিমেন্টের প্রলেপ দিয়ে খোয়া ঢেকে দেন।

কিশোরগঞ্জ উপজেলা ছাত্রসমাজের সভাপতি শাকিল আহম্মেদ বলেন, ভবনটির গ্রেট বিম ঢালাইয়ের সময় রট কম দেওয়ার কারণে গ্রেট বিম হেলে পড়েছিল। এছাড়াও ভবনটির ছাদ ঢালাইসহ অন্যন্য কাজে নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহার করা হয়েছে।

কিশোরগঞ্জ কেশবা ফাজিল মাদ্রাসার সুপার জালাল উদ্দিন বলেন, মাদ্রসা ভবনের ছাদ ঢালাইয়ের সময় ঠিকাদার বেশি করে বালু এবং কম করে সিমেন্ট ব্যবহার করছিল। পরে তাৎক্ষনিক বিষয়টি তদারকি কর্মকতার্কে অবহিত করি। বাকিটা তদারকি কর্মকতাই বলতে পারবে।

ঠিকাদার শাহিন চেীধুরীর সাথে কথা বললে তিনি বলেন, ভাই কাজে একটু উনিশ বিশ হতে পারে এঁটা কোন বিষয় না। তাছাড়া এগুলা নিয়ে লেখালেখি করে কোন লাভ হবেনা। বড় জোর একমাস কাজ বন্ধ থাকবে।

নীলফামারী শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী (অতিরিক্ত দায়িত্ব) মোঃ শাহিনুর ইসলাম বলেন, ভবন নির্মাণ কাজ আপাতত বন্ধ থাকবে। আমি সরেজমিনে গিয়ে কাজ দেখে কোন অনিয়ম হলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করব। প্রকল্প এলাকায় সাইনবোর্ড না লাগানোর বিষয়ে বললে তিনি বলেন, আগামীকালকের মধ্যেই সাইনবোর্ড লাগানোর ব্যবস্থা করছি।

স্কুলের মাঠ বারান্দা গরু ছাগলের মল মূত্র দিয়ে ভোরপুর

স্কুলের মাঠ বারান্দা গরু ছাগলের মল মূত্র  দিয়ে ভোরপুর





খাদেমুল ইসলাম রাজ 
বীরগঞ্জ প্রতিনিধিঃ

স্কুলের বারান্দা মাঠ গরু ছাগলের পায়খানা ভোর পুর।কিছু স্থানীয় মানুষ  এমন অনৈতিক কাজ করার কারণে শিক্ষার পরিবেশ মারাত্মকভাবে ব্যাহত হওয়াসহ নানা রোগে আক্রান্ত হতে পারে কোমলমতি শিশু শিক্ষার্থীরা।

কপোতাক্ষ নিউজ অনুসন্ধানে জানা গেছে, দিনাজপুর বীরগঞ্জ  উপজেলার পলাশবাড়ী ইউনিয়নে ১৯২১খ্রী স্থাপিত হয়  ৮নং মদাতী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়। 
এলাকার একমাত্র শিশু শিক্ষার বতিঘর হিসেবে খ্যাত এ বিদ্যালয়টি অনেক সুনামের সাথে শিক্ষার আলো বিলিয়ে যাচ্ছে।
স্কুলে এসে দেখা যায় গরু ছাগলের মল, মূত্র সহ নানা বর্জ্যে স্কুলের বারান্দা সহ শ্রেণিকক্ষ নোংরা হয়ে পড়ে এবং দুর্গন্ধে স্কুল ক্যাস্পাসে থাকা দুরুহ হয়ে পড়েছে।

পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থীরা জানায় স্কুল মাঠে গরু ছাগলের বান্দে রাখার ফলে আমাদের প্রতিদিন অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে পড়ালেখা করতে হয়েছিল, কিন্তু করোনা কারনে স্কুল বন্ধ আছে আর এ ছাড়াও আমাদের খেলাধুলা একেবারেই বন্ধ রয়েছে।বর্ষাকালে এই মাঠে কাঁদা পানি এবং শুষ্ক মৌসুমে ধুলা বালুতে একাকার হয়। স্কুল খেলার মাঠের বিষয়ে দুঃখ প্রকাশ করে নাম প্রকাশ না করার শর্তে এলাকার বেশ কয়েকজন অভিভাবক জানান, রক্ষক যেখানে ভক্ষকের ভূমিকায় সেখানে শিক্ষার পরিবেশ রক্ষা করবে কে?

এ প্রসঙ্গে ৮নং মদাতী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের খেলার মাঠে গরু ছাগলের বান্দে রাখার বিষয়ে অভিযোগ খুব শিগগিরি ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানান এলাকা বাসি।

ভোলা ব্লাড ডোনার্স ক্লাবের অসাধারণ কার্যক্রম

ভোলা ব্লাড ডোনার্স ক্লাবের অসাধারণ কার্যক্রম




মোঃ আওলাদ হোসেন 
জেলা প্রতিনিধি ভোলা (দৌলতখান)

ভোলা জেলা দক্ষিণ বাংলার একটি প্রত্যন্ত ও উপকূলীয় এলাকা।এই জেলাটিতে শিক্ষা, দীক্ষা, রাজনৈতিক ব্যাক্তিত্ব, সমাজিক কর্মকান্ড,প্রাকৃতিক সৌন্দর্য, খনিজ সম্পদ, অতিথিয়েতা এমনকি সামাজিক মূল্যবোধ কোন দিকদিয়েই যেন কমতি নেই। 
বিশেষ করে সামাজিক সহযোগিতা ও সহমর্মিতা যেন প্রত্যেকটা রন্ধ্রে রন্ধ্রে অনুপ্রবেশ করেছে।
কিছু যুব সমাজ যেন মানুষের সেবা ছাড়া কোন কিছুই চিনে না।এই জেলায় অনেক গুলো সামাজিক সংগঠন খুব জোড়ালো ভাবে সমাজে ভূমিকা রাখছে।
ভোলা ডোনার্স ক্লাব এর মধ্যে অন্যতম একটি সংগঠন। 
সংগঠনটিতে যে সকল ভাই খুব দক্ষতার সাথে কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছেন তারা হলেন(১)এস,এম, আলী হায়দার(২) হাছিবুল হাসান শান্ত(৩)মাহে আলম মাহী(৪)মাহফুজুর রহমান(৫)ওমর ফারুক জয়(৬)আজহার হোসেন বাপ্পি(৭)শান্ত(৮)রাকিব বিন আদম।
গ্রুপ টির কার্যক্রম আরো দুই বছর আগে থেকে শুরু হলেও তা একেবারে মন্থর ছিলো। গত ১৬-০৭-২০২০ তারিখ থেকে এস এম আলী হায়দার দায়িত্ব নেয়ার পর গ্রুপটিতে যেন নূতন প্রাণ ফিরে পেয়েছে।
আলী হায়দার বলেন, এটাকে ঢেলে সাজানোর কাজে হাত দিয়েছি আশাকরি আল্লাহর রহমতে আমাদের কাজে ভোলা জেলার মানুষের কাছে আস্থার সেচ্ছাসেবী সংগঠন হিসেবে   স্থান দখল করতে সক্ষম হবে।
সাম্প্রতিক এই সংগঠনটি অনেককেই স্বেচ্ছায় রক্তদান করেছে। 
সমাজের অবহেলিত,দূর্বল,অসহায়,গরীব ও প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর সেবা দান করার জন্য ভোলা ব্লাড ডোনার্স ক্লাবটি বদ্ধপরিকর।

পরীক্ষার নামে ছাএ ছাত্রীদের কাছে ১০০টাকা আদায়

পরীক্ষার নামে ছাএ ছাত্রীদের  কাছে ১০০টাকা আদায়





শামিম উদ্দিন চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি :

চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার শিবগঞ্জ উপজেলার মাষ্টার পাড়ায় অবস্থিত ইউরেকা মাল্টিমিডিয়া স্কুল। প্রথম সাময়িক পরীক্ষা নাম করে ছাএ ছাএিদের কাছ থেকে পরীক্ষার ফি ১০০ টাকা করে নিয়ে নিচ্ছে। ফি বাবদ ছাএ ছাএিদেরকে কিছু পরীক্ষার খাতা কিছু কোশচীন দিয়ে নিজ নিজ বাড়িতে পরীক্ষা দিতে বলে।

দিনাজপুর রাজদেবোত্তর এস্টেটের নতুন কমিটির সাথে সাংবাদিকবৃন্দের মতবিনিময়

দিনাজপুর রাজদেবোত্তর এস্টেটের নতুন কমিটির সাথে সাংবাদিকবৃন্দের মতবিনিময়



মামুনুর রশিদ, দিনাজপুর প্রতিনিধি  ॥ দিনাজপুর জেলা প্রশাসক ও দিনাজপুর রাজদেবোত্তর এস্টেটের ট্রাষ্টি মোঃ মাহমুদুল আলম বলেছেন, খুব শীঘ্রই দিনাজপুর রাজদেবোত্তর এস্টেটের পূর্বের কমিটির সকল তথ্য-উপাত্ত দিয়ে ভিডিও চিত্র প্রকাশ করা হবে। যার মাধ্যমে তাদের মুখোশ উম্মোচিত হবে।শ্রদ্ধাভাজন ব্যাক্তিত্ব অমলেন্দু ভৌমিক বাবু একজন প্রবীণ মানুষ। তিনি সবার শ্রদ্ধার পাত্র। তার প্রতি যথাযথ শ্রদ্ধা রেখেই বলছি- তাঁর অসুস্থতার সুযোগ নিয়ে পূর্বের কমিটির একটি অংশ নিজেদের আখের গোছিয়েছে, তাদের মুখোশ দিনাজপুরবাসীর সামনে প্রকাশ করা হবে। আমরা তাদের প্রতি ঘৃণা জানাই। কারো রক্তচক্ষুকে ভয় করা হবে না। রাজদেবোত্তর এস্টেটের বেহাত হওয়া প্রতি ইঞ্চি জমি উদ্ধারে সব রকম চেষ্টা করা হবে। এজন্য যা যা করণীয় তা করা হবে। রাজদেবোত্তর এস্টেট শুধু হিন্দুদের সম্পত্তি নয়, এটা জাতীয় সম্পদ। জাতির এ সম্পদ রক্ষা করার দায়িত্ব সবার। পূর্বের কমিটি সম্পত্তিগুলো অবহেলায় ফেলে রেখে দিয়েছিল, যা প্রতিনিয়ত বেদখল হয়ে যাচ্ছিল, তা সত্যিই খুব দুঃখজনক। গত ১৫ জুন দায়িত্ব হস্তান্তর হলেও এখন পর্যন্ত কোন রকম কাগজপত্র বুঝে পায়নি নতুন কমিটি। শুধুমাত্র ৪টি ব্যাংকের চেক বই তারা দিয়েছে। কিন্তু কোন ক্যাশ বই, প্রনামী আদায় বই, রশিদ-মুুড়ি কোনটাই দেয়নি।তবে তা উদ্ধার করার ব্যাপারে প্রচেষ্টা অব্যাহত আছে। প্রয়োজনে আইনের সাহায্য নিয়ে তা উদ্ধার করা হবে। আশ্চার্যজনক বিষয় হলো- মাত্র দু’বছরে কান্তজীউ মন্দির মেলার ইজারার ২৯ লাখ টাকা আমার হেফাজতে রয়েছে। সেগুলো আমি ব্যাংকে রেখেছি, তাদেরকে দেইনি। ফলে সেগুলো তছরুপ হয়নি। দু’বছরেই যদি এতোগুলো টাকা হয় তাহলে বাকী ২৭ বছরে কতগুলো টাকা হবে, তার কোন হিসাব নেই। এভাবেই দায়িত্বহীন অবস্থায় ১৯৯১ সাল থেকে চলেছে দেবোত্তর এস্টেটের কমিটি। আজ সাংবাদিকদের সাথে যে মতবিনিময় সভা হচ্ছে-তা অনেক আগেই হওয়া দরকার ছিল। সম্ভবত দেবোত্তর এস্টেটের ইতিহাসে এটিই প্রথম সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় সভা। আমি আজ কয়েকটি কথা পরিস্কার করে বলছি- এই ট্রাষ্ট স্ব-মহিমায় যেন সারা বিশ্বে পরিচিতি পায়, সে ব্যবস্থা আমি করবো। রাজদেবোত্তর এস্টেটের সম্পত্তি যিনি দান করেছেন, সেই মহারাজাকে কেউ চেনে না। আমি তাকে পরিচিত করতে রাজবাড়ী ও কান্তজীউ মন্দিরে দুটি ম্যুরাল স্থাপন করবো। যা দেখে সবাই জানতে পারবে, এই লোকটির সম্পত্তি এসব। আগামী দূর্গাপুজার আগেই রাজবাড়ীর দূর্গা মন্ডপের সামনের জলাবদ্ধতা দূর করার কাজ করবো। সেই সাথে এখানে পর্যাপ্ত লাইটিং ব্যবস্থা নিশ্চিত করবো। আর একটি ভালো ব্রোশিয়ার তৈরী করবো। যা হবে আন্তর্জাতিক মানের। ওই ব্রোশিয়ারই রাজদেবোত্তরের সমস্ত সাক্ষ্য বহন করবে।তিনি বলেন, আমরা এ কাজ করতে নতুন কার্যকরী কমিটি গঠন করেছি। আবার এই কমিটির মাথার উপর একটি উপদেষ্টা কমিটি করেছি। যাতে প্রধানমন্ত্রীর আন্তর্জাতিক বিষয়ক উপদেষ্টা অধ্যাপক ড. গওহর রিজভীসহ অনেক উঁচুমানের লোকজনকে রাখা হয়েছে। এরমধ্যে বিচারপতি, সাবেক সচিবসহ অন্যান্য বরেণ্য ব্যক্তিবর্গ রয়েছেন। যেহেতু আমরা জাতির স্বার্থ উদ্ধারে কাজ করছি, সেজন্যই তারা আমাদের সাথে কাজ করতে রাজী হয়েছেন। খুব তাড়াতাড়ি এটর্নী জেনারেলও আমাদের উপদেষ্টা কমিটিতে যুক্ত হবেন। জেলা প্রশাসক বলেন, রাজদেবোত্তরের টাকা আমরা জনকল্যানে ব্যয় করতে চাই। যারা অর্থাভাবে পড়ালেখা কিংবা চিকিৎসা করতে পারছে না, তাদের সাহায্য-সহযোগিতা আমরা করতে চাই।
দিনাজপুর রাজবাড়ী শ্রী শ্রী কালিয়া জিউ মন্দির প্রাঙ্গণে রাজদেবোত্তর এস্টেটের নতুন কমিটির সাথে সাংবাদিকবৃন্দের মতবিনিময় সভায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি উপরোক্ত কথাগুলো বলেন। কমিটির সদস্য ও বিরল উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক রমা কান্ড রায়ের প্রাণবন্ত সঞ্চালনায় এতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন, কমিটির সদস্য সচিব ও এজেন্ট রনজিৎ কুমার সিংহ। কমিটির সার্বিক কার্যক্রমের চিত্র তুলে ধরে বক্তব্য রাখেন, কমিটির সদস্য শ্যামল কুমার ঘোষ। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, রাজদেবোত্তর এস্টেটের সহ-সভাপতি ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) আবু সালেহ মোঃ মাহফুজুল আলম, দিনাজপুর সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাগফুরুল হাসান আব্বাসী, কমিটির সদস্য ও দিনাজপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি স্বরূপ বকসী বাচ্চু, এ্যাড. দিলীপ চন্দ্র পাল, বিমল চন্দ্র দাস, দিনাজপুর জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক উত্তম কুমার রায়, এ্যাড. সরোজ গোপাল রায়, সঞ্জয় মিত্র প্রমূখ। সাংবাদিকদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, সাপ্তাহিক আওয়ামী কন্ঠের বার্তা সম্পাদক নূরুল হুদা দুলাল, দৈনিক আমাদের সময়ের দিনাজপুর জেলা প্রতিনিধি রতন সিংহ ও এনটিভির স্টাফ রিপোর্টার ফারুক হোসেন। উপস্থিত সাংবাদিকবৃন্দ দেবোত্তর এস্টেটের পুরাতন কমিটির সকল দূর্নীতির একটি শ্বেতপত্র অবিলম্বে প্রকাশের দাবী জানান। অনুষ্ঠানে দিনাজপুর রাজদেবোত্তর এস্টেটের এজেন্ট ও সদস্য সচিব রনজিৎ কুমার সিংহ বলেন, ৩০ বছর পর আমরা দায়িত্ব পেয়েছি। অনেক পরিকল্পনা রয়েছে। সব ধীরে ধীরে বাস্তবায়ন করা হবে। প্রথমেই বেহাত হওয়া সম্পত্তি উদ্ধার করার কাজ করা হবে। এছাড়া হরিবাসর সংস্কার, মহারাজার ম্যুরাল স্থাপন, মন্দিরের সামনে জলাবদ্ধতা নিরসন করা হবে। মোট কথা দৃশ্যমান উন্নয়ন আমরা করতে চাই। এক্ষেত্রে সাংবাদিকসহ সকলের ঐকান্তিক সহযোগিতা আমাদের একান্ত প্রয়োজন।
অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র গীতা পাঠ করেন রাজবাড়ী শ্রী শ্রী কালিয়া জিউ মন্দিরের গীতা পাঠক বিনোদ চন্দ্র সরকার। অনুষ্ঠানের শেষে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম শতবার্ষিকী মুজিববর্ষ উপলক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত বৃক্ষরোপন কর্মসূচীর আওতায় রাজবাড়ীতে একটি গাছের চারা লাগিয়ে কর্মসূচীর শুভ সুচনা করেন জেলা প্রশাসক। পরবর্তীতের রাজদেবোত্তর এস্টেটের পক্ষ থেকে ২০১টি গাছের চারা রোপন করা হবে বলে জানানো হয়।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় পুলিশ হত্যার প্রধান আসামি মামুন র‍্যাবের সাথে বন্দুকযুদ্ধে নিহত

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় পুলিশ হত্যার প্রধান আসামি মামুন র‍্যাবের সাথে বন্দুকযুদ্ধে নিহত




এস.এম অলিউল্লাহ ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি

 আজ সোমবার (২০ জুলাই) গভীর রাতে সদর উপজেলার মাছিহাতা ইউনিয়নের চান্দপুর বাজারে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানার এএসআই আমির হোসেন হত্যার প্রধান আসামি মামুন র‍্যাবের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে নিহত হয়েছে।

র‍্যাব ১৪ ভৈরব ক্যাম্পের সহকারী পরিচালক চন্দন দেবনাথ বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান,
মামলার প্রধান আসামি মামুনকে ধরতে র‍্যাবের একটি দল রাতে চান্দপুর বাজারে অভিযান চালায়। এ সময় র‍্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে মামুনের বাহিনী পাল্টা গুলি চালায়।
এ সময় আত্মরক্ষার্থে র‍্যাবও পাল্টা গুলি চালালে মামুন গুলিবিদ্ধ হলে তাকে জেলা সদর হাসপাতালে নিয়ে এলে কতর্ব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

তিনি আরও জানান, ঘটনাস্থল থেকে একটি বিদেশি পিস্তল, চার রাউন্ড গুলি ও একটি ছুরি উদ্ধার করা হয়। নিহতের মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে।

দূর্বার তারুণ্যের ফেসবুক যোদ্ধা লাইভ এ মোঃ রেজাউল করিম চৌধুরী

দূর্বার তারুণ্যের ফেসবুক যোদ্ধা লাইভ এ মোঃ রেজাউল করিম চৌধুরী




রিয়াজুল করিম রিজভী স্টাফ রিপোর্টার চট্টগ্রাম

দূর্বার তারুণ্য একটি মানবতার সংগঠন।এই সংগঠনটি সব সময় তারুণ্যের মধ্যে মানবতার জয় গান গাইতে কাজ করে। মানুষের সকল সুখে দুঃখে পাশে থাকে এই সংগঠনটি। উক্ত সংগঠন তারুণ্যের সাথে মানবতার পথে কাজ করে যাচ্ছে।

মঙ্গলবার ২১ এ জুলাই রাত ৯ টায় যোদ্ধা (পর্ব ৩৫) নিয়ে ফেসবুক লাইভ করবেন দূর্বার তারুণ্য। উক্ত লাইভ টি উপস্থাপনা করবেন দূর্বার তারুণ্যের স্বপ্নদ্রষ্টা অভিনেতা মানবতার যুদ্ধা তারুণ্যের অনুপ্রেরণা আবু আবিদ।

এই নিয়ে মোঃ রেজাউল করিম চৌধুরী স্যার কে নিয়ে দূর্বার তারুণ্যের এই যাএা যুদ্ধা পর্ব ৩৫। দূর্বার তারুণ্যের এই ফেজবুক লাইভ এ আলোচনা করা হবে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের সময় থেকে এখনকার সময় পর্যন্ত সময়ের সকল ইতিহাস।

মঙ্গলবার রাত ৯ টায় দূর্বার তারুণ্যের স্বপ্নদ্রষ্টা অভিনেতা মানবতার যুদ্ধা আবু আবিদ এর উপস্থাপনায় দূর্বার তারুণ্যের যুদ্ধা পর্ব ৩৫ এর লাইভ অনুষ্ঠানটি দূর্বার তারুণ্যের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজে দেখতে দূর্বার তারুণ্যের ফেসবুক পেইজ এ যুক্ত হতে অনুরোধ জানিয়েছেন দূর্বার তারুণ্যের সদস্যরা।

কুমিল্লার হোমনার আরেক কৃতি সন্তান রেজাউল করিম সোনালী ব্যাংকের জিএম

কুমিল্লার  হোমনার আরেক কৃতি সন্তান রেজাউল করিম সোনালী ব্যাংকের জিএম





শাহ আলম জাহাঙ্গীর 
ব্যুরো চিফ, কুমিল্লা

সোনালী ব্যাংক লিমিটেডের  জেনারেল ম্যানেজার (জিএম) (ইনচার্জ) পদে পদোন্নতি লাভ ককরেন কুমিল্লার হোমনা উপজেলার আরেক কৃতি সন্তান মো. রেজাউল করিম। 

তিনি গত ৫ জুলাই খুলনার বিভাগের জেনারেল ম্যানেজার (ইনচার্জ) হিসেবে যোগদান করেন। এর আগে তিনি সোনালী ব্যংক ঢাকার বঙ্গবন্ধু এ্যাভিনিউ প্রিন্সিপাল অফিসে ডিজিএম হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

 রেজাউল করিম বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, ময়মনসিংহ থেকে স্নাতকসহ স্নাতকোত্তর ডিগ্রি লাভ করে ১৯৯৪ সালে বাংলাদেশ সোনালী ব্যংকের  ঝিনাইদাহ শাখায় সিনিয়র অফিসার হিসেবে প্রথম চাকুরিতে যোগদান করেন। পরবর্তীতে তিনি ২০০১ সালে কৃতিত্বের সঙ্গে এমবিএ ডিগ্রি অর্জন করেন। 

চাকরি জীবনে মো. রেজাউল করিম ঝিনাইদাহ এবং চট্টগ্রাম শাখায় সিনিয়র অফিসার, প্রিন্সিপাল অফিসার হিসেবে ঢাকা হেড অফিস, বিভিন্ন কর্পোরেট শাখায় সিনিয়র প্রিন্সিপাল  অফিসার, হযরত শাহ্জালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরসহ চারটি গুরুত্বপূর্ণ শাখার প্রধান এবং ঢাকা প্রিন্সিপাল অফিসে ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। 

শিক্ষাজীবনে তিনি পিতার চাকরি সূত্রে ঘোড়াশাল ইউরিয়া সারকারখানা উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে ১৯৮৩ সালে স্টার মার্কস পেয়ে এসএসসি, ১৯৮৫ সালে ঢাকা কলেজ থেকেও স্টার মার্কস পেয়ে এইচএসসি এবং ১৯৯২ সালে বাংলাদেশ কৃষি বিশ^বিদ্যালয় থেকে প্রথম শ্রেণিতে বিএসসি(এজি) (সম্মান) ও ১৯৯৩ সালে প্রথম শ্রেণিতে প্রথম স্থান অধিকার করে এমএসসি ডিগ্রি অর্জন করেন। 

পেশাগত জীবনে তিনি মালয়েশিয়া, ভারত এবং থাইল্যান্ডে উচ্চতর প্রশিক্ষণ গ্রহণ করেন।

মো. রেজাউল করিম ১৯৬৭ সালে কুমিল্লা জেলার হোমনা উপজেলার শ্রীমদ্দি গ্রামের সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতার নাম মরহুম আবদুল কুদ্দুস।
ব্যক্তিগত জীবনে মো.রেজাউল করিম ১ কন্যা ও ১ পুত্র সন্তানের জনক। 

তিনি দ্য ইনস্টিটিউট অব ব্যাংকার্স বাংলাদেশ (আইবিবি) -এর একজন ডিপ্লোমেট এসোসিয়েট। 
হোমনাবাসী তার উত্তরোত্তর সাফল্য এবং উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ কামনা করে। 
জিএম (ইনচার্জ)মো. রেজাউল করিমের পূর্বে হোমনা উপজেলার ভাষানিয়া ইউনিয়ন পরিষদের  প্রাক্তন  চেয়ারম্যান রঘুনাথপুর গ্রামের মৃত হাজি মো. রফিকুল ইসলামের মেজো ছেলে মো.জহিরুল ইসলাম (বর্তমানেঅবসরপ্রাপ্ত)
সোনালী ব্যাংকের ফরিদপুর অঞ্চলে জিএম পদে কর্মরত ছিলেন।

মাধবপুরে ৭টি রেল ষ্টেশন তালাবদ্ধ

মাধবপুরে ৭টি রেল ষ্টেশন তালাবদ্ধ





লিটন পাঠান হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি

আখাউড়া-সলেট রেল সেকশনের মাধবপুর উপজেলার ৭টি রেল ষ্টেশনের এখন করুণ দশা। রেলের মূল্যবান যন্ত্রপাতি লোপাট হয়ে যাচ্ছে। তালাবদ্ধ রেল ষ্টেশন গুলো চালু করার কোনো উদ্যোগ নেই। এর মধ্যে ইটাখোলা, তেলিয়াপাড়া, কাশিমনগরে তিনটি রেল ষ্টেশনে কিছু লোকাল ট্রেন যাত্রা বিরতি করলেও ষ্টেশন মাষ্টার না থাকায় প্রচুর যাত্রী বাধ্য হয়ে বিনা টিকেটেই ট্রেন ভ্রমন করছেন।

ষ্টেশন ৭টি সংস্কার করে চালু করলে সরকারের রাজস্ব প্রাপ্তি সহ এলাকাবাসী ট্রেন চলাচলে সুবিধা হত। এছাড়া ষ্টেশন গুলো বন্ধ ও পরিত্যক্ত হয়ে পড়ায় এখানে নানা অসামাজিক ও অপরাধীদের নিরাপদ আস্থানায় পরিণত হয়েছে। কাশিমনগর রেল ষ্টেশনের টিকেট মাষ্টার নুরুল ইসলাম গত ৭ বছর আগে মারা যাবার পর এ ষ্টেশনে কোনো নতুন লোকবল প্রদায়ন করা হয়নি। যে কারণে রেল ষ্টেশনের কার্যালয়ে তালাবদ্ধ অবস্থায় রয়েছে।

ষ্টেশনের দোকানদার সুধির চন্দ্র দাস জানান, এখন পার্শ্ববর্তী ১৫/২০টি গ্রাম থেকে আখাউড়া-সিলেট রোডে প্রায় প্রতিদিন ৪টি লোকাল ট্রেনে ২/৩শ যাত্রী সাধারণ ওঠানামা করে। কিন্তু এ ষ্টেশনে তালাবদ্ধ থাকায় যাত্রীরা বাধ্য হয়েই বিনা টিকেটেই ভ্রমন করছেন। একই অবস্থা তেলিয়াপাড়া ও শাহপুর ইটাখোলা রেল ষ্টেশনের। ব্রিটিশ আমলে তেলিয়াপাড়া রেল ষ্টেশন এক সময় খুবই জমজমাট ছিল। পার্শ্ববর্তী সুরমা, তেলিয়াপাড়া চা বাগান থেকে উৎপাদিত চাপাতা সহজেই চট্টগ্রাম ওয়ার হাউজে পাঠানো হতো। কিন্তু রেল ষ্টেশনটি ক্রমেক্রমে এখন বন্ধ হয়ে পড়েছে।

প্রায় ৭ বছর আগে টিকেট মাষ্টার আব্দুল হাই মারা যাবার পর এখানে নতুন করে কোনো জনবল দেওয়া হয়নি। এ রেল ষ্টেশনে অনেক সরকারী সম্পদ ইতিমধ্যে চুরি হয়ে গেছে। সাবেক সমাজ কল্যাণ মন্ত্রী প্রয়াত এনামুল হক মোস্তফা শহিদ তেলিয়াপাড়া রেল ষ্টেশন সংস্কারের উদ্যোগ নিলেও তিনি মারা যাবার কারণে তা আর হয়নি। এছাড়া ইটাখোলা ষ্টেশন একটি সুপ্রসিদ্ধ ষ্টেশন ছিল। এ রেল ষ্টেশন থেকে অনেক পণ্য ও মানুষ রেলপথে আসা যাওয়া করত।

কিন্তু এ ঐতিহ্যবাহী রেল ষ্টেশনে এখন দুএকটি লোকাল ট্রেন যাত্রা বিরতী করলেও প্রায় ১ যুগের বেশি সময় ধরে এটি বন্ধ রয়েছে। অনেক মূল্যবান যন্ত্রপাতি এখান থেকে খোয়া গেছে। ছাতিয়াইন ও সুতাং রেল ষ্টেশন প্রায় ২ যুগের বেশি সময় ধরে পরিত্যক্ত অবস্থায় রয়েছে। এছাড়া অনেক স্থানে গেইট ও গেইট ম্যান না থাকায় সাধারণ যানবাহন রেলের উপর দিয়ে পাড় হচ্ছে। এতে করে অনেক স্থানেই ঘটছে রেল দুর্ঘটনা। নোয়াপাড়া ইউনিয়ন চেয়ারম্যান সৈয়দ মোঃ জাবেদ মিয়া জানান, মাধবপুরে দেশের প্রায় ১শটির বেশি নামীদামি শিল্প প্রতিষ্ঠান গড়ে উঠেছে।

এ কারণে এখন রেলপথে মানুষের পন্য , চালান সহ যাত্রীদের ভ্রমন চাহিদা বৃদ্ধি পেয়েছে। এছাড়া সড়ক পথে বেশি দুর্ঘটনা হওয়ায় রেল পথকে মানুষ বেশি আরামদায়ক ও নিরাপদ মনে করে। এ কারণে বন্ধ ৭টি রেল ষ্টেশন সংস্কার করে চালু করলে এলাকার মানুষের সুবিধার পাশাপাশি শিল্প প্রতিষ্ঠানের উৎপাদিত পন্য সামগ্রী চালান দেওয়া সহজ হবে।

এতে সরকারেরও রাজস্ব আয় বৃদ্ধি পাবে। হবিগঞ্জ-৪ (মাধবপুর-চুনারুঘাট) আসনের সংসদ সদস্য এডভোকেট মাহবুব আলী বলেন, মাধবপুরের ৭টি রেল ষ্টেশনগুলোর সংস্কার ও লোকবল নিয়োগ খুবই প্রয়োজন। ৭টি রেল ষ্টেশন চালু হলে রেল পথে মানুষের ভ্রমন সহজ হবে। এ বিষয়ে সংসদে বক্তব্য উপস্থাপন করা হয়েছে। রেল মন্ত্রীকে বিষয়টি জানানো হয়েছে। আশা করি সরকার যোগাযোগ উন্নয়নের বিষয়ে মাধবপুরে ৭টিরেল ষ্টেশনে উন্নয়নে যুগপযোগি সিদ্ধান্ত নেবে।

ঝিনাইদহ পৌর মেয়র সাইদুল করিম মিন্টু’র করোনা পজিটিভ

ঝিনাইদহ পৌর মেয়র সাইদুল করিম মিন্টু’র করোনা পজিটিভ


 


খোন্দকার আব্দুল্লাহ বাশার। 
( ঝিনাইদহ জেলা প্রতিনিধি) 



ঝিনাইদহে করোনা পরিস্থিতির ফ্রন্টলাইন যোদ্ধা, ঝিনাইদহ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সদর পৌরসভার মেয়র সাইদুল করিম মিন্টু করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। রবিবার(১৯ জুলাই) রাতে তার করোনা পরীক্ষার ফল আসে। এবিষয়ে ঝিনাইদহ সিভিল সার্জন অফিসের মুখপাত্র ডাঃ প্রসেনজিত বিশ্বাস পার্থ নিশ্চিত করে তার জন্য দোয়া কামনা করেছেন।

মেয়র সাইদুল করিম মিন্টু দেশে করোনা প্রাদুর্ভাবের প্রথম থেকেই ঝিনাইদহ জেলা শহরে সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখা সহ স্বাস্থ্য সচেতনতায় ব্যপক প্রচার প্রচারণা চালান।তিনি নিজে মাঠে থেকে লিফলেট,মাস্ক,জীবাণু নাশক নিয়ে মানুষের দ্বারে দ্বারে ছুটেছেন।তিনি ঝিনাইদহ শহরের ৩৫ হাজার ঘরবন্দী মানুষের মধ্যে ত্রাণের ব্যবস্থা করেছেন। মধ্যবিত্ত পরিবারেও গোপনে পাঠিয়েছেন আর্থিক সহায়তা। ঝিনাইদহে করোনা হাসপাতালে সেন্ট্রাল অক্সিজেন প্রকল্প স্থাপনের একজন অন্যতম উদ্যোক্তা। এই প্রকল্পটি প্রায় বাস্তবায়নের পথে।

ঝিনাইদহ শহরে করোনা আক্রান্ত রোগীদের বাড়ি বাড়ি যেয়ে খোজ নিয়েছেন খাবার-ফল পাঠিয়ে দিয়েছেন।তিনি ঝিনাইদহ শহরের পাড়া ভিত্তিক ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প স্থাপনের পৃষ্টোপোশকতা করেছেন।ঝিনাইদহ শহরের স্বেচ্ছাসেবীদের নিয়ে তিনি করোনা মোকাবেলাই সারাদিন ছুটোছুটি করে বেড়িয়েছেন।কখনো দেখা গেছে তপ্ত দুপুরে মুখে মাস্ক,চোখে রৌদ্র চশমা পরে ছদ্মদেশে শহরের অলিগলিতে ঘুরে বেড়িয়েছেন।

মেয়র সাইদুল করিম মিন্টুর করোনায় আক্রান্ত হওয়ার ব্যাপারে ঝিনাইদহ জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রানা হামিদ তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করে তার জন্য জেলা বাসীর কাছে দোয়া কামনা করেছেন।

মেয়র সাইদুল করিম মিন্টু নামের একটি পাতা থেকে একটি পোস্টও করা হয়েছে তার নামে।এই পোস্টেও তিনি ঝিনাইদহবাসীকে সচেতন হয়ে ঘরে থাকতে অনুরোধ করেছেন।

মধুপুরে চার জনকে গলা কেটে হত্যার মূল হোতা গ্রেফতার

মধুপুরে চার জনকে গলা কেটে হত্যার মূল হোতা গ্রেফতার





মো: আ: হামিদ মধুপুর টাঙ্গাইল প্রতিনিধিঃ

টাঙ্গাইলের মধুপুরে একই পরিবারের চার জনকে গলাকেটে হত্যা মামলার মূল হোতা সাগরকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব। এ সময় তার নিকট থেকে হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত ছুরি ও লুন্ঠিত  মালামাল উদ্ধার করা হয়েছে।

রোববার (১৯ জুলাই) রাতে এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে টাঙ্গাইল র‌্যাব-১২ জানায়, টাঙ্গাইলের মধুপুরে দুই সন্তানসহ বাবা-মা’কে গলাকেটে হত্যা করা হয়। ঘটনার পর থেকে র‌্যাব-১২ এর টাঙ্গাইল ইউনিট সকল প্রকার গোয়েন্দা নজরদারি শুরু করে। পরে আজ সকালে হত্যাকাণ্ডের প্রধান আসামি উপজেলার ব্রাহ্মণবাড়ি এলাকার মো: মগবর আলীর ছেলে মোঃ সাগর আলী (২৭),কে নিজ বসতবাড়ি থেকে গ্রেপ্তার করা হয়।

পরে তাকে জিজ্ঞেসাবাদে সে হত্যাকাণ্ডের সত্যতা স্বীকার করে জানায়, ভুক্তভোগী আব্দুল গনি সুদের ব্যবসা করতো। আসামি সাগর আলীর সাথে পূর্বেথেকেই তার সুদের লেনদেন ছিলো। আসামি বেশ কয়েকবার সুদের টাকা দিতে ব্যর্থ হয়। গত মঙ্গলবার আব্দুল গনির কাছে পুনরায় দুইশত টাকার জন্য গেলে তাকে অনেক বকাঝকা করে তাড়িয়ে দেয়া হয়।

এতে সাগর অপমান বোধ করলে তার অপর এক সহযোগীকে নিয়ে হত্যা এবং টাকা পয়সা ও সম্পদ লুণ্ঠনের পরিকল্পনা করে।

পরিকল্পনা অনুযায়ী সাগর তার সহযোগীকে নিয়ে গত বুধবার দিবাগত রাত আনুমানিক ১০ ঘটিকায় ভুক্তভোগী গনির বাসায় যায়। যাওয়ার পূর্বে সাগরের সহোযোগী বাজার থেকে চেতনা নাশক নিয়ে যায়। আসামি গনি মিয়ার  পূর্বপরিচিত হওয়ায় খুব স্বাভাবিকভাবে বাসায় ঢোকার অনুমতি পায়।

আকস্মিকভাবে চেতনা নাশক ব্যবহার করে গনিকে অচেতন করে। পরিবারের সবাই তখন ঘুমে থাকায় অচেতন করতে সহজতর হয়। সবাইকে ঠাণ্ডা মাথায় ভুক্তভোগীর বাসায় ব্যবহৃত কুড়াল ও আসামিদের ব্যবহৃত ধারালো অস্ত্র দিয়ে প্রত্যেককে কুপিয়ে মৃত্যু নিশ্চিত করা হয়। গৃহ ত্যাগ করার পূর্বে বাসার মূল্যবান জিনিসপত্র নিয়ে পলায়ন করে এবং বাসার বাহির থেকে তালা মেরে পালিয়ে যায়।
আসামির স্বীকারোক্তি অনুযায়ী, পরবর্তীতে আসামির বোনের বাড়ি, উপজেলার  ব্রাহ্মণবাড়ি (মজিদ চালা), থেকে হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত ধারালো চাকু ও লুণ্ঠিত মালামাল উদ্ধার করা হয়। অপর সহযোগীকে গ্রেফতার করতে টাঙ্গাইল র‌্যাব এর অভিযান চলমান রয়েছে

যমুনায় পানি বাড়ায় নাগরপুরে বন্যার পরিস্থিতি চরম অবনতি

যমুনায় পানি বাড়ায় নাগরপুরে বন্যার পরিস্থিতি চরম অবনতি




হাসান সাদী,নাগরপুর(টাংগাইল)প্রতিনিধি:যমুনা নদীতে পানি বাড়ায় টাঙ্গাইলের নাগরপুর উপজেলায় বন্যা পরিস্থিতির চরম অবনতি হয়েছে।

আজ সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেল-দুয়াজানী কলেজ পাড়া, বাবনাপাড়া,ঘিওরকোল, নাগরপুর সরকারি কলেজ,উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স,নাগরপুর-চৌহালী সড়ক গুরুত্বপূর্ণ স্থান সহ সমগ্র নাগরপুর জুড়ে বন্যার পানিতে ছেড়ে গেছে ফলে চরম বিপাকে পড়েছেন সাধারণ মানুষের পাশাপাশি গৃহপালিত পশু ও। 

ঘরবাড়ি তলিয়ে যাওয়ায় গবাদি পশু নিয়ে আশ্রয়কেন্দ্রের দিকে ছুটছেন শত শত মানুষ। প্রশাসনের পক্ষ থেকে ত্রাণ সহায়তা দিলেও তা প্রয়োজনের তুলনায় অনেক কম। 
বন্যার পানিতে কোন কোন এলাকার কাঁচা-পাকা রাস্তা ডুবে গেছে। 

জানা গেছে, গত ৩ দিন ধরে যমুনায় পানি বাড়ায় ভারড়া, গয়হাটা, সলিমাবাদ ও দপ্তিয়র এলাকার হাজার হাজার মানুষের ঘরে পানি উঠেছে। বসতঘরের পাশাপাশি ডুবে গেছে টয়লেট, নলকূপ, রান্নাঘর, গোয়ালঘর। ফলে রান্না করা দুরূহ হয়ে পড়েছে। সংকট দেখা দিয়েছে বিশুদ্ধ পানির। অনেকে ঘরের ভেতর মাচা পেতে হাঁস-মুরগি ও গবাদিপশু নিয়ে থাকছেন। আবার অনেকে ঘরবাড়ি ছেড়ে ছুটছেন নিরাপদ স্থানে।

বন্যার পানির স্রোতে নাগরপুর উপজেলার সলিমাবাদ ইউনিয়নের তেবাড়িয়ায় বেইলী ব্রিজ ভেঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে।

এছাড়া, নাগরপুর শাহাজানী সড়কের বনগ্রামে পাকা রাস্তায় পানি উঠে পার্শ্ববর্তী চৌহালী উপজেলার সঙ্গে সারাদেশের সড়ক যোগাযোগ বন্ধ হয়ে গেছে।

পানি উন্নয়ন বোর্ড ও জেলা প্রশাসনের সূত্রে জানা গেছে, গত দুই দিনে জেলার নদ-নদীর পানি অস্বাভাবিক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে। 

বন্যা পরিস্থিতি দেখতে উপজেলা প্রশাসনের টিম শনিবার সারা দিন উপজেলার বন্যা কবলিত বিভিন্ন এলাকা পরিদর্শন করে পানিবন্দি মানুষদের নিকটবর্তী আশ্রয় কেন্দ্রে যাওয়ার পরামর্শ দেন। 

নাগরপুর ইউনিয়নের দুয়াজানী কলেজ পাড়া ও ঘিওরকোল এলাকার একাধিক বাসিন্দা জানান, গত দুই দিনে প্রচুর পানি বেড়েছে।আজ ও পানি বাড়ছে।বাড়ির ওঠান সহ পানিতে ভর্তি। এলাকার অনেকেই ঘরবাড়ি ফেলে আশ্রয়কেন্দ্র ও নিরাপদ স্থানে গিয়ে আশ্রয় নিয়েছেন। এতো পানি গতবারেও হয়নি। গরু-ছাগল নিয়ে চরম দুর্ভোগে দিন কাটছে তাদের।

বাবনা পাড়ার এক ভায়াতে বলেন, 'পানি বাড়ায় আমাদের কাজ কাম বন্ধ হয়ে গেছে। এতোদিন করোনায় কাজ বন্ধ ছিল এখন আবার বন্যায় বন্ধ করে দিল। 

আরেক মৎস্য ব্যবসায়ি ও দুয়াজানী কলেজ পাড়ার বাসিন্দা মো. সোহেল রানা বলেন, এবারের বন্যায় আমার ৩টি পুকুর ভেসে গেছে। এতে প্রায় ৮ লক্ষাধিক টাকার মাছ বের হয়ে গেছে।'

নার্সারির মালিক মো. তারা মিয়া বলেন, বন্যার পানি আমার নার্সারিতে ঢুকে পরায় আমার প্রায় ২ লক্ষাধিক টাকার বিভিন্ন প্রজাতির গাছ তলিয়ে গেছে। বন্যার পানি দীর্ঘস্থায়ী হলে গাছের চারাগুলো মরে যাবে।

দারুল আরকাম শিক্ষকদের প্রকল্পটি পাশের জন্য আগামীকাল জাতীয় প্রেসক্লাবে সাংবাদিক সম্মেলন

দারুল আরকাম শিক্ষকদের  প্রকল্পটি পাশের জন্য আগামীকাল জাতীয় প্রেসক্লাবে সাংবাদিক সম্মেলন




আব্দুর রাজ্জাক, হরিরামপুর (মানিকগঞ্জ) প্রতিনিধি:
দারুল আরকাম প্রকল্পটি 2020 এর জানুয়ারি থেকে বাস্তবায়ন ও শিক্ষকদের বিগত জানুয়ারি হতে বকেয়া বেতন পরিশোধের জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সদয় দৃষ্টি আকর্ষণ কল্পে আগামী সোমবার, ২০ জুলাই ২০২০ খ্রি. সকাল ১০.০০ টায় জাতীয় প্রেসক্লাব ভিআইপি হলে সাংবাদিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে।

সংবাদ সম্মেলনে ইসলামিক ফাউন্ডেশন এর সম্মানিত গভর্নর মহোদয় ও ধর্ম মন্ত্রণালয়ের ওয়াকফ প্রশাসন এর সম্মানিত আইনজীবী মহোদয় উপস্থিত থাকার সদয় সম্মতি জ্ঞাপন করেছেন।
এতে যোগাযোগ রক্ষা করে কেন্দ্রীয় কমিটি,  বিভাগীয় ও জেলা কমিটির দায়িত্বশীল /প্রতিনিধিগণকে নিজ দায়িত্বে উপস্থিত হওয়ার জন্য বিনীত অনুরোধ করা যাচ্ছে।
 
ঢাকার সকল শিক্ষকগণকে যোগাযোগ রক্ষা করে যথাসময়ে উপস্থিত থাকতে হবে।
ঢাকার আশপাশের জেলাগুলোর শিক্ষক বন্ধুগণ অবশ্যই যোগাযোগ রক্ষা করে উপস্থিত থাকার চেষ্টা করবেন।

বিঃদ্রঃ সকল শিক্ষক বন্ধুগণ মাক্স ব্যবহার করতে হবে, সম্ভব হলে হ্যান্ড গ্লাভস ব্যবহার করতে হবে এবং সু মোজা পরে আসার চেষ্টা করবেন।
 শারীরিক দূরত্ব এবং স্বাস্থ্যবিধি মেনে উপস্থিত থাকার জন্য বিনীত অনুরোধ করছি।

সার্বিক বিষয়ে যোগাযোগ রক্ষা করুন। ঢাকা:
জাকির হোসেন গোপালগঞ্জী
01916-503061
নাজমুল হুদা
01712-367932
মনিরুজ্জামান
01739-124466
ওসমান গনি
01629-081086
আনোয়ার হোসেন
01740-584450
আলমাস হোসাইন
01914-987447
লুতফুর রহমান
01774-220533
জয়নুল আবেদীন ভাই অসুস্থ থাকায় আপাতত তাঁকে বেশি কল না দেওয়াই ভালো।

সকল ভেদাভেদ ভূলে এগিয়ে আসুন। সকলের ঐকবদ্ধ সমর্থন ও সহযোগিতা প্রত্যাশী।
 দারুল আরকাম প্রকল্প বাস্তবায়নের স্বার্থে সকল শিক্ষকগণ উপস্থিত থাকার জন্য অনুরোধ করা হইলো।

সাতক্ষীরা'র সিনিয়র সাংবাদিক মহসিন হোসেন বাবলুর দাফন সম্পন্ন

সাতক্ষীরা'র সিনিয়র সাংবাদিক মহসিন হোসেন বাবলুর দাফন সম্পন্ন





আজহারুল ইসলাম সাদী, জেলা প্রতিনিধিঃ

সাতক্ষীরা'র সিনিয়র সাংবাদিক, দৈনিক আজকের সাতক্ষীরা পত্রিকার সম্পাদক ও প্রকাশক মহসিন হোসেন বাবলুর দাফন সম্পন্ন হয়েছে। 

তিনি রোববার (১৯ জুলাই) দিবাগত রাত ২ টার সময়  সাতক্ষীরা শহরের আট পুকুর এলাকায় নিজ বাড়িতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে ইন্তেকাল করেন।
মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল (৫৮)বছর। তিনি স্ত্রী, দুই মেয়ে, ভাই-বোন ও আত্মীয় স্বজনসহ অসংখ্যা গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।
বাদ জোহর সাতক্ষীরা শহরের কাশেমপুর মাদ্রাসা ময়দানে তার প্রথম জানাজা নামাজে উপস্থিত ছিলেন সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সভাপতি ও দৈনিক দৃষ্টিপাতের সম্পাদক জি এম নুর ইসলাম, পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর শেখ শফিক উদ-দৌলা সাগর, দৈনিক দৃষ্টিপাতের নির্বাহী সম্পাদক আবু তালেব মোল্যা, আবুল হোসেন প্রমুখ ব্যক্তিবর্গ।
জানাযা নামাজে ইমামতি করেন মাওলানা ইউসুফ আলি, মরহুমের  দ্বিতীয় জানাযা নামাজ বিকাল ৪ টায় তার গ্রামের বাড়ি সদর উপজেলার দেবনগরে অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত  জানাযা নামাজে ইমামতি করেন হাফেজ মোঃ সাব্বির হোসেন। জানাযা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে বাবা’র কবরের পাশে তাকে সমাহিত করা হয়।
তাঁর আত্মার মাগফিরাত কামনা ও শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করেছেন সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সভাপতি জি এম নুর ইসলাম, সহ-সভাপতি কাজী শওকত
হোসেন ময়না, সাধারণ সম্পাদক মোজাফ্ফার রহমান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এবিএম মোস্তাফিজুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক আক্তারুজ্জামান বাচ্চু, অর্থ সম্পাদক মোঃ আবুল কালাম, সাহিত্য ও ক্রীড়া সম্পাদক শাকিলা ইসলাম জুঁই, দপ্তর সম্পাদক আহসানুর রহমান রাজীব, নির্বাহী সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা কালিদাস রায়, হাবিুবর রহমান, রামকৃষ্ণ চক্রবর্তী, কামরুল হাসান, মোহাম্মদ আলী সুজনসহ সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সকল সদস্যবৃন্দ।