ডিএইচএমএস প্রফেশনাল কোর্স প্রথম বর্ষ থেকে ফাইনাল বর্ষের পরীক্ষা-২০১৯ ফলাফল প্রকাশ

ডিএইচএমএস প্রফেশনাল কোর্স প্রথম বর্ষ থেকে ফাইনাল বর্ষের পরীক্ষা-২০১৯ ফলাফল প্রকাশ
         



ডা.এম.এ.মান্নান,টাংগাইল জেলা প্রতিনিধি:বাংলাদেশ সরকারের স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যান মন্ত্রালয়ের অধিভুক্ত বাংলাদেশ হোমিওপ্যাথি বোর্ড অধীনে  পরিচালিত ডিএইচএমএস প্রফেশনাল কোর্সের প্রথম,দ্বিতীয়, তৃতীয় ও চতুর্থ বর্ষের ফলাফল আজ প্রকাশ হয়েছে।

 আজ সোমবার,২৭ জুলাই ২০২০খ্রি. বোর্ডের হল রুমে বাংলাদেশ হোমিওপ্যাথি বোর্ড এর সুযোগ্য  চেয়ারম্যান,হোমিওরত্ন ডা.দিলীপ কুমার রায়ের নিকট ফলাফল হস্তান্তর করছেন বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক ডা.শহিদুল ইসলাম ভূঁইয়া।

ফলাফল হস্তান্তর সময় উপস্থিত ছিলেন বোর্ড রেজিস্ট্রার কাম সেক্রেটারি ডা.মোঃ জাহাঙ্গীর আলম, বোর্ড সদস্যদের মধ্যে ডা.শেখ মোঃ ইফতেখার উদ্দিন ডা.আশিস শংকর নিয়োগী, ডা.কায়েম উদ্দিন, শিক্ষক সমিতির সভাপতি ডা.কামরুজ্জামান ভূঁইয়া, টাংগাইল হোমিও মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালের সুযোগ্য অধ্যক্ষ ডা.সাহিদা আক্তার, কল্যাণ ট্রাস্টের সভাপতি ডা.মোঃতোফাজ্জল হোসেন,সহকারী পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক ডা.তারিকুজ্জামান সোহেল প্রমুখ।

মাস্ক পরতে বলায় যুবলীগ নেতা, পুলিশ সার্জেন্ট কে গুলি করে হত্যার চেষ্টা

মাস্ক পরতে  বলায় যুবলীগ নেতা, পুলিশ সার্জেন্ট কে গুলি করে হত্যার চেষ্টা





সম্রাট হোসেন, স্টাফ রিপোর্টারঃ


রাজধানী মিরপুর কালশী মোড়ের কাছাকাছি কর্তব্যরত ট্রফিক সার্জেন্টকে মারধর করার সাথে সাথে পিস্তল বের করে হত্যা করতে উদ্দ্যত হন পল্লবী থানা যুবলীগ নেতা জুয়েল রানা। এঘটনায় উক্ত ট্রাফিক পুলিশ বাদী হয়ে পল্লবী থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলার এজহার সূত্রে জানা যায়, পল্লবী ট্রাফিক জোনে কর্মরত সার্জেন্ট মোঃ আল ফরহাদ গত ২৬ জুলাই সঙ্গীয় কনস্টেবলসহ কালশী রোডের পূর্ব প্রান্ত ক্রসিং এবং আশেপাশের এলাকায় যানবাহন নিয়ন্ত্রনে কাজ করছিলেন। বেলা ১১ টার দিকে কালশী মেইন রোডের পূর্ব প্রান্তের দিকে একটি বসুমতি বাসের ইঞ্জিন বিকল হয়ে পড়ে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে সার্জেন্ট আল ফরহাদ সঙ্গীয় কনস্টেবলসহ দ্রুত পদক্ষেপ নেন। এসময় বাসের পিছনে কালো জিপ গাড়িতে থাকা যুবলীগ নেতা জুয়েল মোল্লা গাড়ি থেকে নেমেই বাসের ড্রাইভারকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করতে থাকে। এসময় সার্জেন্ট ফরহাদ তাকে গাড়ির পাশ কাটিয় যেতে বললে ক্ষেপে যায় জুয়েল রানা বাজে ভাষায় গালাগালি করতে থাকে সার্জেন্ট ফরহাদকে।

সাজেন্ট ফরহাদ তাকে মুখে মাস্ক পড়ে সুন্দরভাবে কথা বলার অনুরোধ জানালে আরো ক্ষিপ্ত হয়ে জুয়েল রানা তার ভাই রিপন মারধর শুরু করে ফরহাদকে। এক পর্যায়ে যুবলীগ নেতা জুয়েল রানা পকেট থেকে পিস্তল বের করে সার্জেন্ট ফরহাদকে হত্যা করতে গেলে ফরহাদ নিজেকে বাচাঁতে দ্রুততার সাথে জুয়েলের হাত চেপে ধরে এবং তার সঙ্গীয় কনস্টেবলসহ আশেপাশে লোকজন জুয়েল রানা ও ফরহাদকে নিরাপদ দুরুত্বে নিয়ে যায়। এ ঘটনার কিছু সময়ের মধ্যে জুয়েল রানার ও তার ভাই রিপন ৩০/৪০ জনের বাহিনী এসে সার্জেন্ট ফরহাদকে আবারো মারধর করতে থাকে। এ সময় জুয়েল রানা সার্জেন্ট ফরহাদের বুকে থাকা বডিঅন সরকারী ক্যামেরা যাতে পুরো ঘটনাটির ভিডিও ধারণ ছিল সেটি ছিনিয়ে নেয় ও টেনে হিচড়ে তার পোষাক ছিড়ে ফেলে। ঘটনাটি সার্জেন্ট ফরহাদ ট্রাফিক ইন্সেপেক্টর এ কে এম মোস্তাফিজুরকে জানালে তিনি পল্লবী থানা পুলিশকে অতিবাহিত করলে পল্লবী থানার টহল পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হলে যুবলীগ নেতা জুয়েল রানা তার বাহিনী নিয়ে পলায়ন করে। ঘটনাস্থলে এসি ট্রাফিক পল্লবী, এডিসি ট্রাফিক মিরপুর উপস্থিত হয়ে সাজেন্ট ফরহাদকে উদ্ধার করে নিকটস্থ ইসলামিয়া হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যান। এ বিষয়ে জুয়েল রানা দিকদর্শনকে বলেন, আমি বাস থামার বিষয়টি জানার জন্য গাড়ি থেকে নামতেই সার্জেন্ট এসে আমাকে মারধর শুরু করে। আমার এমপি মহোদয় ডিসি সাহেব ও তার সাথে কথা বলে বিষয়টি সমাধান করে দিবেন। সার্জেন্ট ফরহাদের কাছে ঘটনার বিষয়টি জানতে চাইলে তিনি কিছু বলতে অপারগতা প্রকাশ করেন।

এমপি ইসরাফিল আলমের মৃত্যুতে এমপি বজলুল হক হারুনের শোকার্ত

এমপি ইসরাফিল আলমের মৃত্যুতে এমপি বজলুল হক হারুনের শোকার্ত




এইচ এম জহিরুল ইসলাম মারুফ,ঝালকাঠি জেলা প্রতিনিধি।

নওগাঁ-৬ (আত্রাই-রাণীনগর) আসনের সংসদ সদস্য ইসরাফিল আলম আজ ২৭ জুলাই সোমবার সকালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেন (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাহি রাজিউন)।
মরহুমের মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন ঝালকাঠি-১আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য জননেতা আলহাজ্ব বজলুল হক হারুন।
এক শোকবার্তায় এমপি বিএইচ হারুন বলেন,মহান জাতীয় সংসদের তিন বারের এই সাংসদ মৃত্যু পর্যন্ত ছিলেন নওগাঁ জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক।
তৃণমূল থেকে উঠে আসা ইসরাফিল আলম ছিলেন শ্রমজীবী মানুষের কণ্ঠস্বর। সর্বত্রই তার মত এমন দরদী মানুষের আজ খুবই অভাব।
তার মৃত্যুতে আমি কেবল প্রিয় একজন সহকর্মীকেই হারাইনি, দেশ হারালো একজন প্রতিশ্রুতিশীল ও নিবেদিতপ্রাণ রাজনৈতিক নেতাকে।
আওয়ামী লীগ নেতা ইসরাফিল আলম নিজের কর্মগুনেই বেঁচে থাকবেন গণমানুষের হৃদয়ে।
এমপি বিএইচ হারুন আজ এক শোকবার্তায় মরহুমের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন এবং তাঁর শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করেন।
ঝালকাঠি -১ আসনের এমপি মহোদয়ের অ্যাম্বাসেডর ও রাজাপুর উপজেলা ছাত্রলীগের সহ সভাপতি মোঃমাহমুদুল হাসান মাহমুদ প্রেরিত শোক বার্তায় এ তথ্য নিশ্চিত করা হয়।

এমপি ইসরাফিল আলমের মৃত্যুতে যশোর -২ আসনের এমপি নাসির উদ্দীন এর শোক প্রকাশ

এমপি ইসরাফিল আলমের মৃত্যুতে যশোর -২ আসনের  এমপি  নাসির উদ্দীন এর শোক প্রকাশ




স্টাফ  রিপোর্টারঃ 

নওগাঁ-৬ (আত্রাই-রাণীনগর) আসনের সংসদ সদস্য ইসরাফিল আলম আজ ২৭ জুলাই সোমবার সকালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেন (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাহি রাজিউন)।
মরহুমের অকাল মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন যশোর -২ আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা মেজর জেনারেল অবঃ অধ্যাপক ডাক্তার মোঃ নাসির উদ্দীন। 
এক শোকবার্তায় তিনি  বলেন,মহান জাতীয় সংসদের তিন বারের এই সাংসদ মৃত্যু পর্যন্ত ছিলেন নওগাঁ জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক।
তৃণমূল থেকে উঠে আসা ইসরাফিল আলম ছিলেন শ্রমজীবী মানুষের কণ্ঠস্বর। সর্বত্রই তার মত এমন দরদী মানুষের আজ খুবই অভাব।
তার মৃত্যুতে আমি কেবল প্রিয় একজন সহকর্মীকেই হারাইনি, দেশ হারালো একজন প্রতিশ্রুতিশীল ও নিবেদিত প্রাণ রাজনৈতিক নেতাকে।
তিনি তার  শোকবার্তায় মরহুমের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন এবং তাঁর শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করেন।

নাসিরনগরে হঠাৎ ভয়ংকর প্রলয়ংকরী ঢেউয়ে বেশ কয়েক পরিবার নিঃস্ব, নিখোঁজ ১

নাসিরনগরে হঠাৎ ভয়ংকর প্রলয়ংকরী ঢেউয়ে বেশ কয়েক পরিবার নিঃস্ব, নিখোঁজ ১




এস.এম অলিউল্লাহ ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি
(ব্রাহ্মণবাড়িয়া), জেলার নাসিরনগর উপজেলায় হঠাৎ ভয়ংকর প্রলয়ংকরী ঢেউয়ে নাসিরনগর সদর, বুড়িশ্বর ইউনিয়নের আশুরাইল গ্রামের নজরুল ইসলাম,সরিফুল ইসলাম, সবিজুল, টেনু মিয়া, দুধ লাল মিয়া, আব্দুল হাসিম, মজনু মিয়া, ছোট্ট মিয়া, কাউছার মিয়া, লিটন মিয়া সহ বেশ কয়েকটি পরিবার ও নাসিরনগর সদরের গাংকুল পাড়া সহ আশপাশের বেশ কয়েকটি পরিবার নিঃস্ব হয়ে গেছে। ভয়ংকর প্রলয়ংকরী ঢেউয়ের কবলে পড়ে নাসিরনগর মহাকাল পাড়ার কৃষ্ণ দাস (৬৫) নামের এক জেলে নিখোঁজ রয়েছে। ২৭ জুলাই ২০২০ রোজ সোমবার দুপুর অনুমান ২ ঘটিকার সময় লঙ্গন নদীতে হঠাৎ সৃষ্ট ভয়ংকর প্রলয়ংকরী ঢেউয়ে    বিভিন্ন পরিবারের ঘরের বেড়া, ঘরের ভিতর থাকা নগদ টাকা,স্বর্ণালংকার, প্রয়োজনীয় আসবাবপত্র ভাসিয়ে নিয়ে গেছে। কৃষ্ণ দাসের স্ত্রী সুমিত্রা রানী দাস জানায়, এ সময় তার স্বামী নৌকা নিয়ে নদীতে মাছ ধরতে গেলে ঢেউয়ের ছোবলে পড়ে নিখোঁজ হয়ে যায়। নাসিরনগর ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের লিডার ও ভারপ্রাপ্ত ষ্টেশন মাস্টার মোঃ জসিম বলেন, আমি সংবাদ পাওয়ার সাথে সাথেই  ঘটনাস্থলে যাই। আমাদের এখানে ডুবুরী না থাকায় মোবাইল ফোনে চাঁদপুরের ডুবুরীর সাথে যোগাযোগ করা হয়েছে। রাতের মধ্যে তারা নাসিরনগরে পৌঁছবে বলে আশা করা যাচ্ছে। ব্রাহ্মণবাড়িয়া-১,নাসিরনগর আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য আলহাজ্ব বিএম ফরহাদ সংগ্রাম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে ক্ষতিগ্রস্থদের সরকারী সাহায্যের আশ্বাস প্রদান করেন। তবে এ প্রলয়ংকরী ঢেউয়ে কি পরিমাণ ক্ষতি হয়েছে তার এখনো সঠিক তথ্য জানা যায়নি।

সিরাজগঞ্জে অসহায়দের মাঝে চাল বিতরণ

সিরাজগঞ্জে অসহায়দের মাঝে চাল বিতরণ
   



মাসুদ রানা  সিরাজগঞ্জ জেলা প্রতিনিধিঃসিরাজগঞ্জে রায়গঞ্জ  উপজেলার পাঙ্গাসী ইউনিয়ন পরিষদের উদ্যাগে কর্মহীন অসহায়  ও দুঃস্থ  মানুষের  মাঝে  ভিজিএফ'র  চাল  বিতরণ  করা হয়েছে । 
সোমবার   ২৭ জুলাই  সকাল ১০ টায় ইউনিয়ন  পরিষদের চত্বরে  সামাজিক  দূরত্ব  বজায়  রেখে   ভিজিএফ এর চাল বিতরণ করেন পাঙ্গাসী ইউনিয়ন  পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান- ১ মোঃ আশরাফুল ইসলাম।
ইউপি  সূত্রে  জানা  যায় ,  পবিত্র ঈদ-উল আযহা  উপলক্ষে ইউনিয়নে দূর্যোগ  ও ব্যবস্থাপনা ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের  বরাদ্দতকৃত ২২ 
মেট্রিক টন ৫০ কেজি ভিজিএফ চাল বরাদ্দ হয়েছে।এর মধ্যে ইউনিয়নে ২২ শত ৫ পরিবার ভিজিএফ এর চালের জন্য তালিকাভুক্ত হয়েছে। প্রতিটি পরিবারকে ১০ কেজি ভিজিএফ চাল দেওয়া হচ্ছে।প্যানেল চেয়ারম্যান মোঃ  আশরাফুল ইসলাম  
বলেন,প্রধানমন্ত্রী শেখ  হাসিনা ক্ষমতায় আসার পর শ্রমিক, অসহায়, দরিদ্রসহ সকল মানুষের অধিকার নিশ্চিত করেছেন। একটিও মানুষ খাদ্যসামগ্রী থেকে বাদ যাবে না। প্রতিটি মানুষের ঘরে ঘরে খাদ্য সামগ্রী পৌঁছে দেওয়া হবে।সকলে যেন ভালোভাবে ঈদ উদযাপন করতে পারে সেজন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পক্ষ থেকে এবং সিরাজগঞ্জ-৩  (তাড়াশ- রায়গঞ্জ) আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য ও  অধ্যাপক ডা. মো. আব্দুল আজিজ এর  সার্বিক  সহযোগিতায়  বরাদ্দকৃত পাঙ্গাসী ইউনিয়নের ৯টি ওয়ার্ডের অসহায়, গরিব ও দুস্থ ২২ শত ৫   পরিবারের মাঝে প্রত্যেক পরিবারকে ১০ কেজি করে চাল বিতরণ করা হয়েছে। 
এসময়  ট্যাগ অফিসার জিয়াউল হক  সচিব মোঃ  রেজাউল  করিম  সহ  ইউপি সদস্যগণ  উপস্থিত  ছিলেন।

মোহাম্মদ নাসিমের স্মরণ সভা ও দোয়ার মাহফিল

মোহাম্মদ নাসিমের স্মরণ সভা  ও দোয়ার মাহফিল



মাসুদ রানা সিরাজগঞ্জ জেলাপ্রতিনিধি ঃ রতনকান্দি ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের উদ্যোগে মনসুর আলী স্মৃতি কল্যাণ পরিষদ সিমান্তবাজারে সদ্য প্রয়াত সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী ও আওয়ামীলীগের সভাপতি মন্ডলীর প্রেসিডিয়াম সদস্য, কেন্দ্রীয় ১৪ দলের সমন্বয়ক আলহাজ¦ মোহাম্মদ নাসিম (এমপি) গত ১৩ই জুন না ফেরার দেশে চলে যাওয়ায় রতনকান্দি ইউনিয়ন আঃলীগ ও সহযোগী সংগঠন ০১ মাস ব্যাপি বিভিন্ন কর্মসূচী ঘোষণা করেন তারই ধারাবাহিকতায় ৩১ দিনে এই স্মরণ সভা করে সোমবার বিকাল ৫ টায়  অনুষ্ঠিত হয় স্মরণ সভা ও দোয়ার মাহফিল। রতনকান্দি ইউনিয়ন আঃলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ছাইদুল ইসলাম জুরানের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসাবে বক্তব্যে রাখেন মোহাম্মাদ নাসিমের জ্যেষ্ঠ পুত্র সাবেক সাংসদ প্রকৌশলী তানভীর শাকিল জয়, উত্তরের কৃতি সন্তান বর্ষীয়ান নেতা মোহাম্মাদ নাসিমের রাজনৈতিক নানা দিক নিয়ে স্মৃতিচারণ করেন। তিনি বলেন, আলহাজ¦ মোহাম্মদ নাসিম বাংলাদেশের একজন সফল রাজনীতিবিদ। মোহাম্মদ নাসিমের স্থান কোনদিনই পূরন হবে না, বাবার রেখে যাওয়া অসম্পূন্ন কাজগুলো আপনাদেরকে সাথে নিয়ে করে যেতে চাই। আপনারাই আমাকে দেখে রাখবেন। তিনি আরো বলেন, তার মৃত্যুতে দেশ ও জাতি হারালো এক মহান রাজনীতিবিদকে, আর আমরা হারালাম আমাদের অভিভাবককে, আপনারাই আমার অভিভাবক। আপনারা আমার জন্য দোয়া করবেন, আমি যেন দাদা ও বাবার আদর্শ নিয়ে এলাকার উন্নয়ন করতে পারি। উক্ত অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ মহিলা আঃলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জনাবা জান্নাতারা তালুকদার হেনরী, জেলা যুবলীগের সাবেক সভাপতি জনাব মঈন উদ্দিন খাঁন চিনু, জনাব এ্যাড. আব্দুল হাকিম সাবেক সাধারণ সম্পাদক জেলা যুবলীগ, জেলা পরিষদ সদস্য ও প্রস্তাবিত মনসুর নগর থানা আঃলীগের যুগ্ম আহব্বায়ক আলহাজ্ব গোলাম রব্বানী তাং, আরিফুল ইসলাম আরিফ সহ সভাপতি কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ, কাজিপুর উপজেলা চেয়ারম্যান খলিলুর রহমান সিরাজী, উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ্ব শওকত হোসেন, এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন   রতনকান্দি ইউনিয়ন আ:লীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক মোঃ মোস্থাফিজুর রহমান বিল্পব,  রফিকুল ইসলাম মাস্টার, সাবেক ছাত্র নেতা নূরে আলম রতন, ইউনিয়ন যুবলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আসলাম উদ্দিন শেখ, ইউনিয়ন আঃলীগের দপ্তর সম্পাদক ইসমাইল হোসেন, আঃমী স্বেচ্ছাসেবক লীগেরর ভারপ্রাপ্ত সভাপতি সোহেল রানা, যুগ্ন  সাধারন সম্পাদক রোকন উদ্দিন, যুবলীগের সাঃ সম্পাদক মোঃ বুলবুল আহম্মেদ ভুট্র সহ জেলা, থানা ও বিভিন্ন ইউনিয়নে সহযোগী সংগঠনের সকল নেতৃবৃন্দ। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন ইউনিয়ন আঃলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আলী হোসেন, দোয়া পরিচালনা করেন হাফেজ মাও. মাসুদুর রহমান জিহাদী সাহেব।

কুড়িগ্রামে পথের দিশারী যুব ও ছাত্র সংঘের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষ্যে বৃক্ষরোপন কর্মসুচী পালিত

কুড়িগ্রামে পথের দিশারী যুব ও ছাত্র সংঘের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষ্যে বৃক্ষরোপন কর্মসুচী পালিত


কৃষ্ণ সরকার পীযূষ, ভ্রাম্যমাণ প্রতিনিধিঃ আজ ২৭ শে জুলাই রবিবার কুড়িগ্রামের উলিপুরে পথের দিশারী যুব ও ছাত্র সংঘের ১৫তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে 'সবুজ অরন্যে ভরে উঠুক আমাদের উলিপুর' এই স্লোগানকে সামনে রেখে  ৩০ দিন ব্যাপি বৃক্ষরোপন কর্মসূচী এর আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম শুরু হয়। 

প্রথমে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে সংগঠনটির   উলিপুর উপজেলা শাখা কেক কাটা শেষে  বৃক্ষ রোপন কর্মসূচি পালন করে। এ সময় সংগঠনের উপজেলা শাখা উলিপুর গন কবরসহ উলিপুরের বিভিন্ন জায়গায় বৃক্ষরোপন করে।


কর্মসূচি তে অংশগ্রহণ করেন  সংগঠন টির উলিপুর উপজেলা শাখার  রাসেদ, ওবায়দুল, আকাশ, সালমান, বাধন

সহ উলিপুর সরকারি কলেজ শাখার আতাহার আলি, সজীব, নাহিদ  রনিসহ সকল সদস্যগণ।


সংগঠনটির পরিচালক শেখ রকিবুজ্জামান রাকিব কুড়িগ্রাম জেলার সকল উপজেলা এবং কলেজ শাখা কে বৃক্ষ বিতরন এবং রোপন কর্মসূচি পালন করতে আহ্বান জানান।

ছাত্রলীগ কর্মী মফিজুলের নেত্বতে নাগরপুরে ভাঙ্গা রাস্তায় সাঁকো করে দিলেন।

ছাত্রলীগ কর্মী মফিজুলের নেত্বতে  নাগরপুরে ভাঙ্গা রাস্তায় সাঁকো করে দিলেন।




হাসান সাদী নাগরপুর(টাঙ্গাইল)প্রতিনিধিঃ
টাঙ্গাইল জেলার নাগরপুর উপজেলার গয়হাটা ইউনিয়নের নয়াপাড়া থেকে গয়হাটা বাজারের মেইন রাস্তা বন্যার পানির কারণে অনেক ভেঙ্গে যায় এ রাস্তায় প্রতিদিন  প্রায় ৫ হাজার মানুষের চলাচল করে। রাস্তা ভাঙায় চলাচল করতে বিপাকে পড়েন স্হানীয় জন সাধারন। ছাত্রলীগ কর্মী মফিজুরের নজরে আসার সাথে সাথে স্হানীয় ছাত্রলীগ কর্মীদের সাথে নিয়ে ভাঙ্গা রাস্তায়  সাঁকো নির্মাণ করে দেন। 

জানা গেছে, পার্শ্ববর্তী ইউনিয়ন বেকড়া, শান্তিনগর সহ বেশ কয়েকটি গ্রামের প্রায় ৫ হাজার মানুষের চলাচল এ সড়ক ধরে। বন্যার পানির কারণে অনেকাংশেই তলিয়ে গেছে সড়কটি, অধিক স্রোতের কারণে এই জায়গায় পুরোপুরি ভেঙ্গে যায়। স্থানীয় জনগণকে তাই পোহাতে হয় অসহনীয় দুর্ভোগ। জনগণের দুর্ভোগ লাঘবে সোমবার নাগরপুর উপজেলা ছাত্রলীগের কর্মীদের সহায়তায় এই সাঁকো নির্মাণ করা হয়।

এ বিষয়ে ছাত্রলীগ নেতা মফিজুল ইসলাম (আবির) বলেন, জাতির যে কোনো দুর্যোগ-সংকটে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ বরাবরই সামনে থেকে নেতৃত্ব দেয়। অতীত ইতিহাস তা-ই বলে। জনগণের ভোগান্তি লাঘবে মানবিক দায়বদ্ধতা থেকেই এ উদ্যোগ নিয়েছি। মানুষ উপকৃত হলেই আমাদের পরিশ্রম সার্থক।

মানিকগঞ্জে বন্যার পরিস্থিতি আরো ভয়াবহ অবনতি ও প্লাবিত হচ্ছে প্রায় সকল উপজেলা

মানিকগঞ্জে বন্যার পরিস্থিতি আরো ভয়াবহ অবনতি ও প্লাবিত হচ্ছে প্রায় সকল উপজেলা




আব্দুর রাজ্জাক হরিরামপুর (মানিকগঞ্জ)প্রতিনিধি 
যমুনা নদীর পানি বেড়ে যাওয়া মানিকগঞ্জের হরিরামপুরে বন্যা পরিস্থিতি আরো ভয়াবহ অবনতি ও প্লাবিত হয়েছে। হরিরামপুর সকল ইউনিয়নের অধিকাংশ বাড়িতে এখন হাটু পানি।প্রতিদিন প্লাবিত হচ্ছে নতুন নতুন কিছু এলাকা। 
এতে উপজেলার বন্যার কবলিত ও নদী ভাঙ্গন এলাকার মানুষ চরম দুর্ভোগের মধ্যে দিয়ে জীবন যাপন করেছে।দেখা দিয়েছে শুকনো খাবার ও বিশুদ্ধ পানির সংকট। 

সরেজমিনে গিয়ে দেখাগেছ,হরিরামপুর উপজেলা চালা ইউনিয়নের দিয়াবাড়ী আশ্রয়ন প্রকল্প ও লাউতা, লেছড়াগঞ্জ,আন্ধারমানিক বাজার, সহ প্লাবিত হয়ে অধিকাংশ ঘর বাড়িতে পানি উঠায় গৃহপালিত পশু পাখি নিয়ে বিপাকে পড়েছেন, এসব অঞ্চলের দিশাহারা মানুষ অনেক কষ্টে জীবন বাঁচাতে হচ্ছে গৃহপালিত পশু ও পরিবার নিয়ে ঠাই নিয়েছেন বিভিন্ন আশ্রায় কেন্দ্র গুলোতে ও রাস্তা ঘাটে। 

এসব এলাকার রাস্তা ঘাট তলিয়ে যাচ্ছে, পানি বন্দি হয়েছে। বিপাকে পড়েছে প্রায় ১২-১৩ হাজার মানুষ খাদ্য সহ বিভিন্ন ত্রাণ সহায়তা দাবি জানিছেন এলাকাবাসী।

নাগরপুরে আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের ২৬ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন

নাগরপুরে আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের ২৬ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন




হাসান সাদী,নাগরপুর(টাংগাইল)প্রতিনিধি: টাঙ্গাইলের নাগরপুরে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুস্পস্তবক অর্পন, গাছের চারা বিতরণসহ নানা আয়োজনে বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের ২৬তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন করেছে নাগরপুর উপজেলা আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ।

আজ সোমবার,২৭ জুলাই ২০২০ খ্রি. সকাল-১০.০০ টায় নাগরপুর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্সের  সামনে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুস্পস্তবক অর্পনের মাধ্যমে দিনের কার্যক্রম শুরু হয়।তারপর টাঙ্গাইল-৬ (নাগরপুর-দেলদুয়ার) আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য জ্বনাব মো.আহসানুল ইসলাম টিটু নাগরপুর উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতাকর্মীদের হাতে গাছের চারা তুলে দেন। এসময় বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের পাশে দাড়াতে উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতৃবৃন্দদেরকে নির্দেশনা দেন। 

উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি বাবর আল মামুনের এর সভাপতিত্বে ও সাধারন সম্পাদক মো.ফারুক হোসেন এর পরিচালনায় ২৬ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী অনুষ্ঠিত হয়।অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন নাগরপুর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মো.হুমায়ুন কবীর, নাগরপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শাহীদুল ইসলাম অপু, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক মো. উজ্জ্বল হোসেন মোল্লা, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সিনিয়র সহসভাপতি বাবুল হোসেন সাগরসহ বিভিন্ন ইউনিয়নের স্বেচ্ছাসেবকলীগের নেতৃবৃন্দ।

পরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আত্মার মাগফিরাত ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং সজিব ওয়াজেদ জয়ের দীর্ঘায়ূ কামনা করে মোনাজাত করা হয়।

মাধবপুরে সীমান্তের অর্ধশত চোরাকারবারীর আত্মসমর্পন

মাধবপুরে সীমান্তের অর্ধশত চোরাকারবারীর আত্মসমর্পন
লিটন পাঠান হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি
হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলার সীমান্তবর্তী এলাকার অর্ধশত চিহ্নিত চোরাকারবারী ৫৫ বিজিবির অধিনায়ক লে. কর্নেল সামীউন্নবী চৌধুরীর কাছে অবৈধ ব্যবসা ছেড়ে দেবে বলে আত্মসমর্পন করে লিখিত অঙ্গীকারনামা দিয়েছেন।

সোমবার (২৭-জুলাই) দুপুরে মাধবপুর উপজেলার সীমান্তবর্তী রাজেন্দ্রপুর মনতলা। হরিনখোলা কমলপুরসহ সীমান্তবর্তী এলাকা থেকে মাদকসহ বিভিন্ন পণ্য ভারত থেকে অবৈধ পথে দেশের আনার কাজে জড়িত ছিলেন এমন ৪৩ জন আত্মসমর্পন করেন।

সম্প্রতি হবিগঞ্জ ৫৫ বিজিবির অধিনায়ক লে. কর্নেল এসএনএম সামিউন্নবী চৌধুরী সীমান্তে অপরাধ, মাদকপাচার রোধে কঠোর হলে বিজিবি সদস্যরা তৎপর হয়ে চোরাচালানবিরোধী অভিযান জোরদার করেন।

এছাড়া মাদকদের বিরুদ্ধে সামাজিক প্রতিরোধ গড়ে তুলতে ৫৫ বিজিবি অধিনায়কের নেতৃত্ব এলাকার বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষের সঙ্গে সভা সমাবেশ ও মতবিনিময় করেন।

মাধবপুরে কাঁচা মরিচে আগুন দাম বেড়েছে চারগুণ

মাধবপুরে কাঁচা মরিচে আগুন দাম বেড়েছে চারগুণ




লিটন পাঠান হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি
হবিগঞ্জের মাধবপুরে সপ্তাহের ব্যবধানে কাঁচা মরিচের দাম বেড়ে চারগুণ হয়েছে। হঠাৎ করেই মাধবপুর পৌরবাজার সহ উপজেলার বিভিন্ন বাজারগুলোতে বেড়েছে কাঁচা মরিচের দাম। এমনকি কোনো কোনো বাজারে কাঁচা মরিচের কেজি ২০০ টাকা ছোয়েছে। টানা বৃষ্টির কারণে কাঁচা মরিচের দাম এমন অস্বাভাবিক বেড়েছে বলে অভিমত ব্যবসায়ীদের।

ব্যবসায়ীরা বলেছেন, কয়েকদিন ধরেই টানা বৃষ্টি হচ্ছে। এতে মরিচের ক্ষেতের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। এছাড়াও উত্তরাঞ্চলে বন্যা দেখা দিয়েছে, সব মিলিয়ে কাঁচা মরিচের দাম বেড়ে গেছে। এদিকে পাইকারি ও খুচরা উভয় বাজারে কাঁচা মরিচের দাম বাড়লেও দামে বড় ধরনের পার্থক্য রয়েছে। কোনো কোনো খুচরা ব্যবসায়ী পাইকারীর দ্বিগুণ দামে কাঁচা মরিচ বিক্রি করছেন। কারওয়ান বাজারে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, প্রতিকেজি কাঁচামরিচ বিক্রি হচ্ছে ৮০ থেকে ১০০ টাকায়, যা কিছুদিন আগে ছিল ২০ থেকে ৩০ টাকা। অর্থাৎ পাইকারিতে কাঁচা মরিচের দাম বেড়ে চারগুণ হয়েছে।

হঠাৎ কাঁচা মরিচের দাম বেড়ে যাওয়ার কারণ সম্পর্কে মাধবপুর বাজারের আড়তদার হাজী আব্দুর রাজ্জাক বলেন, উত্তরাঞ্চলে দিন দিন বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হচ্ছে। এর সঙ্গে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে কয়েকদিন ধরে টানা বৃষ্টি দেখা দিয়েছে। এতে মরিচের খেতের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে এ কারণেই কাঁচামরিচের দাম বেড়ে গেছে। মাধবপুর বাজার ব্যবসায়ী জুয়েল মিয়া বলেন কিছু দিন আগেও এক পোয়া কাঁচামরিচ ১৫ টাকা বিক্রি করেছি। সেই মরিচ এখন ৪০ টাকা বিক্রি করতে হচ্ছে এরপরও আড়তে মরিচ সেইভাবে পাওয়া যাচ্ছে না।

বৃষ্টিতে মরিচের খুব ক্ষতি হয়ে গেছে। আর কয়েকদিন এভাবে চললে মরিচের দাম আরও বেড়ে যাবে। পূর্ব মাধবপুর গ্রামের মোহন মিয়া বলেন সবসময় দেখি বৃষ্টি হলেই কাঁচা মরিচের দাম বেড়ে যায়। মহামারি করোনা ভাইরাসের মধ্যেও এর ব্যতিক্রম হলো না। ১৫ টাকা পোয়া বিক্রি হওয়া কাঁচামরিচ এক লাফে ৫০ টাকা হয়ে গেছে। কতদিন এই অবস্থা থাকবে তার ঠিক নেই আমাদেরও কিছু করার নেই। দাম যতই হোক মেনে নিতে হবে।

ঝিনাইদহে পিতার অপমানের প্রতিশোধ নিতে ছুরিকাঘাতে যুবক কে হত্যা

ঝিনাইদহে  পিতার অপমানের প্রতিশোধ নিতে   ছুরিকাঘাতে যুবক কে হত্যা






খোন্দকার আব্দুল্লাহ বাশার। 
( ঝিনাইদহ জেলা প্রতিনিধি) 



ঝিনাইদহের হরিণাকুন্ডু উপজেলার ভবানীপুর বাজারে সোমবার সন্ধ্যায় ছুরকাঘাতে মিলন আহম্মেদ (৩৮) নামে এক যুবককে হত্যা করা হয়েছে। নিহত মিলন খলিশাকুন্ডু গ্রামের ইছাহাক আলীর ছেলে। পুর্ব শত্রুতার জের ধরে এই হত্যাকান্ড সংঘটিত বলে পুলিশ প্রাথমিক ভাবে মনে করছে। নিহতর চাচা তাহেরহুদা ইউনিয়নের মেম্বর ওহিদুল ইসলাম জানান, মিলন ভবানীপুর বাজার মসজিদ থেকে আসরের নামাজ পড়ে বাইরে বের হওয়া মাত্রই কুষ্টিয়ার ইবি থানার অর্ন্তগত বলরামপুর গ্রামের মোতালেব ফকিরের ছেলে জুয়েল তাকে ছুরি মেরে ভুড়ি বের করে দেয়। মিলনকে মুমুর্ষ অবস্থায় হরিণাকুন্ডু উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ভর্তি করা হলে সোমবার সন্ধ্যার দিকে মৃত্যুবরণ করেন। ওহিদুল মেম্বর আরো জানান, ঘাতক জুয়েলের পিতা মোতালেব ফকির কবিরাজী করতে এসে নিহত জুয়েলের চাচির সাথে অবৈধ সম্পর্ক স্থাপন করে। সে সময় মিলন ও তার পরিবারের সদস্যরা মোতালেব ফকিরকে অপমান অপদস্ত করে বা মারধর করে তাড়িয়ে দেয়। পিতার অপমানের প্রতিশোধ নিয়ে সুযোগ খুজতে থাকে ঘাতক জুয়েল। ৫ বছর আগের সেই ঘটনার প্রতিশোধ নিতে জুয়েল এই হত্যাকান্ড ঘটায় বলে ওহিদুল মেম্বর অভিযোগ করেন। এ বিষয়ে হরিণাকুণ্ডু থানার ওসি মোঃ আসাদুজ্জামান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, পুর্ব শত্রুতার জের ধরে হত্যাকান্ড ঘটেছে। পুলিশ আসামী ধরার জন্য অভিযান চালাচ্ছে।

আশাশুনিতে প্রাম্ভিক কর্মশালা অনুষ্ঠিত

আশাশুনিতে প্রাম্ভিক কর্মশালা অনুষ্ঠিত




আহসান উল্লাহ বাবলু উপজেলা প্রতিনিধিঃ   
আশাশুনিতে কিশোরী প্রতিবন্ধীদের যৌন, প্রজনন স্বাস্থ্য ও সেবা সংক্রান্ত প্রকল্প বাস্তবায়নের লক্ষ্যে প্রাম্ভিক কর্মশালা অনুষ্ঠিত। সোমবার সকালে উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে এ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়। নারীকণ্ঠ উন্নয়ন সংস্থা কিশোরী প্রজেক্ট এর আয়োজনে ও ডিজ্যাবল রিহ্যাবিলিটিশন এন্ড রিসার্চ এ্যাসোসিয়েশনের সহযোগিতায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মীর আলিফ রেজার সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে কর্মশালার উদ্বোধন করেন, উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আ'লীগের সভাপতি এবিএম মোস্তাকিম। কর্মশালা উদ্বোধনকালে এবিএম মোস্তাকিম বলেন, প্রতিবন্ধীদের প্রতি আমাদের 

সবাইকে আন্তরিক হওয়াসহ বর্তমান সময়ে মহামারী করোনা ভাইরাস থেকে রক্ষা পেতে সামাজিক দূরত্ব বজায় 

রাখা ও মাক্স ব্যবহার নিশ্চিত করতে হবে। এসময় উপজেলা স্বাস্থ্য ও পঃ পঃ কর্মকর্তা ডাঃ সুদেষ্ণা সরকার, উপজেলা পরিসংখ্যান কর্মকর্তা শ্মশান কুমার, এনজিও প্রতিনিধি নারী কন্ঠের উপজেলা সুপারভাইজার মজিফা খাতুন, প্রাইড প্রোজেক্টের কোঅর্ডিনেটর মুজিবর রহমান অংশগ্রহণ করেন।

আশাশুনি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে স্ট্রীট ল্যাম্প স্থাপন

আশাশুনি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে স্ট্রীট ল্যাম্প স্থাপন




আহসান উল্লাহ বাবলুউপজেলা প্রতিনিধিঃ   
আশাশুনি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রধানমন্ত্রীর উপহার সাতক্ষীরা ৩ আসনের সংসদ সদস্য অধ্যাপক ডাঃ আফম রুহুল হকের পক্ষে স্ট্রীট ল্যাম্প স্থাপন করা হয়েছে। সোমবার সকালে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স চত্বরে এ স্ট্রীট ল্যাম্প স্থাপন করা হয়। স্ট্রীট ল্যাম্প স্থাপন করেন সাতক্ষীরা ৩ আসনের সাংসদ প্রতিনিধি ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শম্ভুজিত  মন্ডল। এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য ও পঃ পঃ কর্মকর্তা ডাঃ সুদেষ্ণা সরকার, উপজেলা আ’লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি নীলকন্ঠ সোম , উপজেলা শ্রমিকলীগ সভাপতি, ঢালী মোঃ সামছুল আলম, সোলার কোম্পানির উপজেলা শাখার ম্যানেজার রমজান আলী, আলাউদ্দিন মোড়ল, সাজ্জাদ হোসেন প্রমুখ।

মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে নাটোর লালপুরে বৃক্ষ রোপণ

মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে  নাটোর লালপুরে বৃক্ষ রোপণ



রাজশাহী ব্যুরো
“মুজিব বর্ষের আহবান,লাগাই গাছ বাড়াই বন”- এই স্লোগানে  নাটোর লালপুর থানায় বৃক্ষরোপণ কর্মসূচির উদ্বোধন করা হয়েছে আজ এই উপলক্ষে সোমবার ২৭ জুলাই সকালে নাটোর জেলা পুলিশ সুপার লিটন কুমার সাহার নির্দেশে লালপুর থানা চত্বরে বৃক্ষরোপণ কর্মসূচির উদ্বোধন করেন লালপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ  সেলিম রেজা । জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম শতবার্ষিকী উপলক্ষে সারা দেশে এক কোটি গাছের চারা রোপন করা হবে। তারই আলোকে প্রায় সাত শত বনজ, ফলজ ও ঔষধি গাছ রোপন করেন । এ সময় লালপুর থানা পুলিশের সকল সদস্য উপস্থিত ছিলেন ।

নাটোর বাগাতিপাড়াই কয়েলের আগুন থেকে পুড়ে ছাই কৃষকের সপ্ন !

নাটোর বাগাতিপাড়াই কয়েলের আগুন থেকে  পুড়ে ছাই কৃষকের সপ্ন !



রাজশাহী ব্যুরো
নাটোর বাগাতিপাড়ায় মশা  তাড়ানোর জন্যে ছাগলের ঘরে  কয়েলের আগুনে পুড়লো কৃষকের সাতটি ছাগল ও তিনটি ঘর।
রবিবার ২৬ জুলাই দিবাগত রাতে উপজেলার ক্ষিদ্রমালঞ্চি মোল্লাপাড়া গ্রামে এ অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে।
ক্ষতিগ্রস্থ কৃষক ওই গ্রামের মৃত আব্দুস ছাত্তারের ছেলে আজবাহার আলী।

স্থানীয়রা জানান, রাতে ছাগলের ঘরে মশা তাড়ানোর জন্যে রাখা কয়েলের আগুন থেকে এই আগুনের সূত্রপাত হয়ে প্রথমে ছাগলের ঘরে আগুন লাগে এবং পরে পাশের দুইটি ঘরও পুড়ে যায়। বিষয়টি টের পেয়ে পরিবারের লোকজন আগুন নেভানোর চেষ্টা করে। পরে স্থানীয়দের সহায়তায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। অনেক চেষ্টা করেও ঘরে রাখা ছাগলগুলোকে বাঁচানো যায়নি। এতে প্রায় এক লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে ক্ষতিগ্রস্থ পরিবার দাবি করেছেন।

সিরাজগঞ্জ বাগবাটিতে সরকারি গাছ বিক্রি করলেন সাবেক অধ্যক্ষ

সিরাজগঞ্জ বাগবাটিতে সরকারি গাছ বিক্রি করলেন সাবেক অধ্যক্ষ



মাসুদ রানা সিরাজগঞ্জ জেলাপ্রতিনিধি ঃ
সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলার বাগবাটী ঢলডোব
কালিমন্দিরের পাশে সরকারি মুল্যবান গাছ
বিক্রি করলেন বাগবাটী আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ
ডিগ্রি কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ শ্রী নির্মল
চন্দ্র দত্ত। পরিবেশ বান্ধব দুইশত বছরের পুরানো
আম গাছটি কেটে ফেলায় ওই জায়গায় গভীর
গর্তের সৃষ্টি হয়ে যোগাযোগ ব্যবস্থা অচল
হয়ে পড়েছে।
বাগবাটী ভুমি কর্মকর্তা মোছা. নাজমা
খাতুন কর্তৃনকৃত সরকারি গাছটি জব্দ করে
সহকারী ভুমি কর্মকর্তা বরাবর ব্যবস্থা গ্রহনের
প্রতিবেদন দাখিল করবেন বলে জানান তিনি।
অভিযোগে জানা যায়, তিন গ্রামের মানুষের
চলাচলের প্রধান রাস্তা ঢলডোব সরকারি
প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দক্ষিনে রাস্তার সংলগ্ন
দুই’শ বছরের পুরাতন আম গাছ গত ১৯ জুলাই
শনিবার সাবেক অধ্যক্ষ শ্রী নির্মল চন্দ্র দত্ত
গাছটি পাইকারের নিকট বিক্রি করে দেন।
পাইকার গাছটি কেটে ফেলেন।
স্থানীয়রা গাছ কাটার বিষয়টি সাংবাদিকদের
অবগত করলে সাংবাদিক স্থানীয় ভুমি অফিসকে
অবগত করেন। ভুমি কর্মকর্তা সরকারি
গাছটি জব্দ করেন এবং ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য
উর্দ্বতন কর্তৃপক্ষের নিকট প্রতিবেদন
দাখিলের প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলে জানান।
স্থানীয়দের অভিযোগ পরিবেশ রক্ষাকারি দুই’শ
বছরের পুরাতন গাছটি ঢলডোব কালিমন্দির ও
সরকারি রাস্তার পাশে ছিল। শ্রী নির্মল চন্দ্র দত্ত
টাকার লোভ সামলাতে না পেরে গাছটি বিক্রি
করে দেন।
স্থানীয়রা আরো জানান, গাছটি কর্তনের
কারনে বৃষ্টির পানিতে ওই জায়গায় গভীর গর্তের
সৃষ্টি হয়ে একদিকে যোগাযোগ ব্যবস্থা অচল
হয়ে পড়েছে অপরদিকে চলমান রাস্তার নির্মান
কাজ বন্ধ হয়ে এলাকার মানুষের চলাচলে
ভোগান্তীর সৃষ্টি হচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে।
এলাকাবাসির অভিযোগ নির্মল চন্দ্র দত্ত একজন
স্বার্থপর ও লোভী ব্যক্তি। তিনি ঢলডোব চলমান
নির্মান রাস্তার মাটি জোরপুর্বক বাড়িতে
নিয়ে যান। তার দেখাদেখি এলাকাবাসি রাস্তার
প্রায় ৩০ থেকে ৩৫ ট্রাক মাটি রাস্তা থেকে
সরিয়ে ফেলেন। এতে ঠিকাদার ক্ষিপ্ত হয়ে রাস্তার
নির্মান কাজ বন্ধ করে দিয়েছেন।
এ বিষয়ে নির্মল চন্দ্র দত্ত বলেন, ওই জায়গার সকল
কিছু আমাদের পুর্ব পুরুষেরা ভোগ দখল করে
আসছিল। তারই জের ধরে গাছটি বিক্রি করা
হয়েছে।
এ বিষয়ে ঢলডোব কালিমন্দিরের সভাপতি শ্রী
সমরেন্দ্র কৃঞ্চ দত্ত জানান, গত ১৫ দিন আগে
প্রবল বর্ষণে গাছের পাশ থেকে মাটি সওে
গিয়ে গর্তেও সৃষ্টি হয় এতে গাছটি হেলে
পরে। এলাকার মানুষের জানমালের ক্ষতি থেকে রক্ষা
করতে এ গাছ বিক্রি করা হয়েছে।
একজন সচেতন ব্যক্তি সাবেক অধ্যক্ষ নির্মল চন্দ্র
সরকারি গাছ নিয়ম বহির্ভুত ভাবে বিক্রি করার
বিষয়টি আইনী ব্যবস্থা গ্রহনের দাবী জানান
এলাকাবাসি।

সরকারি কর্মকর্তাদের নিষ্ঠার সাথে কাজ করে মানুষের সেবায় নিজেকে উৎসর্গ করতে হবে -এমপি গোপাল

সরকারি কর্মকর্তাদের নিষ্ঠার সাথে কাজ করে মানুষের সেবায় নিজেকে উৎসর্গ করতে হবে                -এমপি গোপাল





মামুনুর রশিদ,দিনাজপুর প্রতিনিধিঃ দিনাজপুর-১ আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য মনোরঞ্জন শীল গোপাল বলেছেন, সরকারি কর্মকর্তাদের নিষ্ঠার সাথে কাজ করে মানুষের সেবায় নিজেকে উৎসর্গ করতে হবে। যাতে মানুষ আজীবন তাঁকে এবং তার কাজকে স্মরণ রাখতে পারে। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সদ্য স্বাধীন বাংলাদেশে এমন আহ্বান জানিয়েছিলেন। তিনি নিজেও দেশের জন্য তথা দেশের মানুষের জন্য নিজের জীবনকে পর্যন্ত উৎসর্গ করেছেন। তার এই আত্মত্যাগ থেকে আমাদের শিক্ষা নিতে হবে। তাঁর কন্যা প্রধানমন্ত্রী দেশরতœ

শেখ হাসিনাও নিজের জীবন বাজি রেখে মানুষের সেবায় কাজ করে যাচ্ছেন। ২১ বার মৃত্যুর মুখোমুখি দাঁড়িয়েও পিছপা হননি। আমাদেরকে এসব দেখে শিক্ষা গ্রহণ করতে হবে। তাহলেই এ দেশ বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশে রূপ নেবে। 
দিনাজপুর জেলার বীরগঞ্জ উপজেলা পরিষদ সভা কক্ষে বীরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ ইয়ামিন হোসেনের বিদায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত কথা বলেন। বীরগঞ্জ উপজেলা পরিষদ আয়োজিত এ সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন উপজেলা চেয়ারম্যান মোঃ আমিনুল ইসলাম। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন, বীরগঞ্জ উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ও সকল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানবৃন্দ। পরে ক্রেস্ট ও ফুল দিয়ে ইউএনও ইয়ামিন হোসেনকে বিদায় জানান সংসদ সদস্য মনোরঞ্জন শীল গোপালসহ অন্যান্য অতিথিবৃন্দ।

দিনাজপুরে ব্যতিক্রমী ওয়ান-ওয়ে আদর্শ পশুর হাট জমে উঠেছে

দিনাজপুরে ব্যতিক্রমী ওয়ান-ওয়ে আদর্শ পশুর হাট জমে উঠেছে




মামুনুর রশিদ,দিনাজপুর প্রতিনিধিঃ  আর মাত্র কয়েকদিন  বাকী, পবিত্র কুরবানির। আর তাই করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে দিনাজপুর সদরের মহারাজা গিরিজানাথ উচ্চবিদ্যালয়ে স্বাস্থ্যবিধি মেনে প্রথম বারের মত ওয়ান-ওয়ে আদর্শ পশুর হাট জমে উঠেছে। দুর-দুরান্ত থেকে এই হাটে আসছে (গরু-খাসি) গোবাদি পশু। 
ঘনএলাকা রেলবাজার থেকে হাটটি স্থান্তর করে খোলামেলা জায়গা শহরের মহারাজা গিরিজানাথ উচ্চবিদ্যালয়ে পশুর হাটটি বসানো হয়েছে। সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে গরু চলাচল,গরু-ছাগলের আলাদা আলাদা জায়গা,টাকা শনাক্ত করার বুধ,পুলিশ বক্স ও শরীরের তাপমাত্র মাপার জন্য থার্মাল স্ক্যানার রয়েছে। প্রতিদিনই এই হাট বসবে বলে হাট কমিটির ইজারাদার তৈয়ব চৌধুরী জানান।
সেনাবাহিনীর ৬৬ পদাতিক ডিভিশনের ১৬ ব্রিগেডের অধিনস্থ ফোর হর্স ইউনিট  ব্যতিক্রমী এই হাটটিতে ক্রেতা-বিক্রেতা হাটের গেটে জিবানু নাষক স্প্রে,সবার হাত ধোয়ার ব্যবস্থা, বিনা মূল্যে মাস্ক বিতরন এবং সামাজিক দূরত্ব মেনে চলে পশু ক্রয় করার ব্যবস্থা করেছেন সেনা-বাহিনী। এতে করে করোনা ভাইরাস সংক্রামন হওয়ার সম্ভাবনা অনেক কমে আসবে।
জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে স্থান নির্বাচনের পর থেকে সেনাবাহিনী নজরদারি ও মনিটরিং করে আসছে। হাটে একটি গেট দিয়ে প্রবেশ করছে গরু-খাসি-অপর গেট দিয়ে পশু কিনে বের হয়ে যাচ্ছে ক্রেতারা। হাট ইজারাদার-জেলা প্রশাসন ও সাধারন মানুষ সবাই হাটের ব্যবস্থাপনা দেখে খুশি। হাটে রয়েছে, প্রানি সম্পদ বিভাগ থেকে মেডিকেল টিম রয়েছে। মেডিকেল টিম অসুস্থ্য গরু-খাসি কে পরীক্ষা-নিরিক্ষা করছেন। ৬৬ পদাতিক ডিভিশন,ফোর হর্সের ক্যাপ্টেন ইসতিয়াক আরাফাত জানান, সারা দেশ সহ দিনাজপুরে যেভাবে করোনা ভাইরাস ছডাচ্ছে,এতে করে আমরা কেউ নিরাপদ নই, তাই স্বাস্থ্যবিধি মেনে ওয়ান-ওয়ে আদর্শ পশুর হাটের পরিকল্পনা গ্রহন করা হয়। দিনাজপুরের ৫৯টি পশুর হাটের মধ্যে বেশির ভাগ অর্থ্যাৎ বড় হাট গুলি আমরা,সেনাবাহিনী তদারকি  করছে। তিনি আশা প্রকাশ করেন,এতে করে করোনা ভাইরাস নিয়ন্ত্রন করা সম্ভব হবে।
দিনাজপুর জেলা প্রানি সম্পদ বিভাগের কর্মকর্তা সাহিনুর আলম জানান,জেলায় কুরবানি উপলক্ষে ১,৯২,২৭৩ টি গোবাদি পশু বিক্রি হয়ে থাকে। এর মধ্যে খাসি ও ভেড়া রয়েছে ৭২,৪০৯ টি। তিনি  বলেন, জেলায় ২৩টি মেডিকেল টিম কাজ করছে। মোট খামারীর সংখ্যা প্রায় ৮ হাজার। প্রান্তিক চাষি রয়েছেন,৫০ হাজার।
এবারের কুরবানিতে খামারী ও প্রান্তিক কৃষক লোকসানের মুখে পড়বেন। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে গরুর দাম না পাওয়া ও বিক্রি না হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এর প্রধান কারন হিসাবে করোনা ভাইরাস ও দফায়-দফায় বন্যা এবং মানুষের কাজ না থাকাকেই দায়ী করেছেন খামারী এসোসিয়েশনের সাধারন সম্পাদক শ্যামল কুমার ঘোষ।

আশাশুনিতে সাস এর পক্ষ থেকে উপবৃত্তি প্রদান

আশাশুনিতে সাস এর পক্ষ থেকে উপবৃত্তি প্রদান




আহসান উল্লাহ বাবলু উপজেলা   প্রতিনিধি:

আশাশুনিতে সাতক্ষীরা উন্নয়ন সংস্থা সাস এর পক্ষ থেকে ছাত্র-ছাত্রীদের মাঝে উপবৃত্তি প্রদান করা হয়েছে। সোমবার সকালে উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে উপবৃত্তির চেক প্রদান করা হয়। উপবৃত্তির চেক প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আ'লীগের সভাপতি এবিএম মোস্তাকিম, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা মীর আলিফ রেজা, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পঃ পঃ কর্মকর্তা ডাঃ সুদেষ্ণা সরকার। সাতক্ষীরা উন্নয়ন সংস্থা সাস এর পক্ষ থেকে  চলতি বছরে মোট ৪৫ জনকে উপবৃত্তি প্রদান করা হয়। উপবৃত্তি প্রদানকালে উপস্থিত ছিলেন সাতক্ষীরা উন্নয়ন সংস্থা সাস এর প্রকল্প সমন্বয়কারী খান মোঃ শাহ আলম, আঞ্চলিক ব্যবস্থাপক শেখ আবদুল হান্নান,শাখা ব্যবস্থাপক শদিউল আলম প্রমুখ।

আশাশুনিতে জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ উপলক্ষে মাছের পোনা অবমুক্ত

আশাশুনিতে জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ উপলক্ষে মাছের পোনা অবমুক্ত




আহসান উল্লাহ বাবলু উপজেলা   প্রতিনিধি:
আশাশুনিতে জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ উপলক্ষে উপজেলা পরিষদের পুকুরে মাছ অবমুক্ত করা হয়েছে। সোমবার সকালে উপজেলা মৎস্য দপ্তরের আয়োজনে পরিষদের পুকুরে এ মাছ অবমুক্ত করা হয়। জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ উপলক্ষে মাছের পোনা অবমুক্ত করেন উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আ'লীগের সভাপতি এ বি এম মোস্তাকিম। মাছের পোনা অবমুক্ত কা কালে এবিএম মোস্তাকিম বলেন মাছ উৎপাদন বৃদ্ধি করি সুখী-সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ি এই স্লোগানকে সামনে রেখে জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ পালিত হচ্ছে। জাতীয় সম্পদ রক্ষার স্বার্থে চিংড়ি মাছে পুশ ও অপদ্রব্য ব্যবহার না করার জন্য সকলের প্রতি আহ্বান জানান। এ সময় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মীর আলিফ রেজা, উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মোস্তাফিজুর রহমান, সমবায় কর্মকর্তা কারিমুল হক, পরিসংখ্যান কর্মকর্তা শ্মশান কুমার, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও রিপোর্টার্স ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সামাদ বাচ্চু, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক বি এম আলাউদ্দীন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

শৈলকুপায় সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ১, আহাত ১"

শৈলকুপায় সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ১, আহাত ১"




সম্রাট হোসেন, শৈলকুপা (ঝিনাইদহ) সংবাদদাতাঃ


ঝিনাইদহ - কুষ্টিয়া মহাসড়কের শৈলকুপা উপজেলার দুধসর চাঁদপুর উওর পাশে রুপসা পরিবহনের একটি বাস বিপরীত দিক থেকে আশা একটি মোটর সাইকেল চালকে চাপা দিয়ে  রাস্তার পাশে গাছের গাছের সাথে ধাকা লাগে। মোটর সাইকেল আরোহি তুষার (২০) নামের কলেজ ছাত্র নিহত হয়েছে এবং রুবেল নামের আর এক জন কলেজ ছাত্র গুরুত্ব আহাত হয়েছে। তাকে ঢাকা মেডিকেলে উন্নত চিকিৎসার জন্য পাঠানো হয়ছে। তাদের দুই জনের বাড়ি শৈলকুপা উপজেলার মির্জাপুর গ্রামের বাসিন্দা।

আশাশুনির বেউলায় মধ্য রাতে বাড়িতে ঢুকে হামলা // স্বর্ণলঙ্কার লুট

আশাশুনির বেউলায় মধ্য রাতে বাড়িতে ঢুকে হামলা // স্বর্ণলঙ্কার লুট




আহসান উল্লাহ বাবলু উপজেলা   প্রতিনিধি : আশাশুনি উপজেলার বুধহাটা ইউনিয়নের বেউলা গ্রামে মধ্য রাতে হিন্দু বাড়িতে ঢুকে গৃহকত্রীর উপর হামলা চালানো হয়েছে। হামলার পর গৃহকত্রীর কানের দুল ছিনিয়ে নেওয়া হয়েছে বলে জানাগেছে।

পারিবারিক সূত্রে জানাগেছে বেউলা গ্রামের যতিন্দ্র নাথ মন্ডলের ছেলে গ্রাম ডাক্তার অরুন মন্ডল ওরফে অরেবিন্দ মন্ডলের বাড়িতে সোমবার দিবাগত রাতে কে বা কারা প্রবেশ করে তাদের সকলকে বন্দি করে রাখে। এসময় গ্রাম ডাক্তার অরুন মন্ডল ওরফে অরেবিন্দ মন্ডলের স্ত্রীর উপর অতর্কিত হামলা চালায় সংঘবদ্ধ হামলাকারীরা। তবে কিছুদিন পূর্বে একই গ্রামে একটি বাড়ির সকলকে অচেতন করে চুরি সংগঠিত হলে অসুস্থ সকলকে চিকিৎসা প্রদান করেন গ্রাম ডাক্তার অরুন মন্ডল ওরফে অরেবিন্দ মন্ডল। সে ঘটনার প্রতি হিংসায় এ হামলার ঘটনা ঘটতে পারে বলে মনে করছেন স্থানীয়রা। অন্যদিকে আশাশুনি থানা পুলিশের পক্ষ থেকে সোমবার সকালে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করা হয়েছে। হামলার ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে আশাশুনি থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) গোলাম কবির বলেন, এ কর্মকান্ডের সাথে জড়িতদের চিহ্নিত করে অতিদ্রুত আইনের আওতায় আনা হবে।

কুয়াকাটা প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন অভিযোগের আঙ্গুল মহিপুর থানার ওসির দিকে

কুয়াকাটা প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন অভিযোগের আঙ্গুল মহিপুর থানার ওসির দিকে





কুয়াকাটা(পটুয়াখালী)প্রতিনিধি॥নাঈমুর রহমান: পটুয়াখালীর মহিপুর থানার লতাচাপলী ইউপি চেয়ারম্যানের পক্ষে এবং মহিপুর থানার ওসির বিরুদ্ধে সোমবার সকাল ১১টায় কুয়াকাটা প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেছে লতাচাপলী ইউনিয়ন পরিষদের সদস্যরা। সম্প্রতি দুটি আঞ্চলিক দৈনিকে প্রকাশিত সংবাদের জন্য মহিপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি)কে দায়ী করে ওই ইউনিয়ন পরিষদের সদস্যরা এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেন।
ইউপি সদস্য জাফর উদ্দিন কুতুব তার লিখিত বক্তব্যে বলেন, লতাচাপলী ইউনিয়নের চেয়ানম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. আনছার উদ্দিন মোল্লাকে জড়িয়ে মহিপুর থানার ওসির ইন্দনে যেসব কথা পত্রিকায় প্রকাশিত হয়েছে তা সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন। তার জনপ্রিয়তায় ঈর্ষান্বিত হয়ে একটি মহলের ইশারায় ওসি তার সুবিধাভোগী সহযোগীদের সংবাদকর্মীদের ভুল তথ্য দিয়ে উক্ত সংবাদ প্রকাশ করিয়েছেন। চেয়ারম্যান আনছার উদ্দিন মোল্লা করোনা আক্রান্ত হয়ে বর্তমানে বাড়ীতে হোম কোয়ারেন্টোইনে রয়েছেন। চাঁদাবাজী, মাসোয়ারা আদায়, ভূমি দস্যুতা, টাকার বিনিময়ে ধর্ষণের ঘটনা ধামাচাপা দেওয়া, মাদক সিন্ডিকেট পরিচালনা এবং সালিশ বাণিজ্যের কথা বলা হলেও যার পুরোটাই মিথ্যা। বরং চেয়ারম্যান ইউপি সদস্যদের উপস্থিতিতে গ্রাম আদালতের ইউনিয়ন পরেষদের এখতিয়ারভ’ক্ত নিয়ম অনুযায়ী সালিশ বোর্ডের মাধ্যমে সালিশ মীমাংশা করে থাকেন। প্রকাশিত সংবাদে চেয়ারম্যানের কোন বক্তব্য নেওয়া হয়নি।
লিখিত বক্তব্যে ইউপি সদস্য কুতুব বলেন, কুয়াকাটা খানাবাদ কলেজের প্রতিষ্ঠাতা আলহাজ্ব জহিরুল ইসলাম খান উদ্দেশ্যমূলক চেয়াম্যানের বিরুদ্ধে প্রকাশিত ওই সংবাদে মানহানীকর বক্তব্য দিয়েছেন। তার জমি নিয়ে মূলত: রাখাইনদের সাথে আদালতে মামলা চলমান, যা আদালতের নিস্পত্তির বিষয়। সেখানে চেয়ারম্যানের কোন সম্পৃক্ততা নেই। এছাড়া চেয়ারম্যানকে নিয়ে মহিপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনিরুজ্জামানের ভাষ্যে সালিশ বাণিজ্যের কথা বলা হলেও প্রকৃতপক্ষে ওসি মনিরুজ্জামান থানা ভবনের নিচতলায় প্রায় প্রতিদিন সালিশ বাণিজ্য নিয়ে বসেন। ওসির অন্যায় অপকর্ম আড়াল করতে সুকৌশলে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালানো হচ্ছে বলে জাফর উদ্দিন কুতুব দাবি করেছেন। 
কুয়াকাটা প্রেসক্লাবের সিনিয়র সহ-সভাপতি আলহাজ্ব কুদ্দুস মাহমুদের সভাপতিত্বে সংবাদ সম্মেলনে লতাচাপলী ইউনিয়ন পরিষদের সকল ইউপি সদস্য এবং কুয়াকাটা প্রেসক্লাবের সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন।

নাগরপুরে বৈদেশিক কর্মসংস্থানের দক্ষতা,প্রচার ও প্রেসব্রিফিং সচেতনতা শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত

নাগরপুরে বৈদেশিক কর্মসংস্থানের দক্ষতা,প্রচার ও প্রেসব্রিফিং সচেতনতা শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত




ডা.এম.এ.মান্নান, টাংগাইল জেলা প্রতিনিধি:জেনে বুঝে বিদেশ যাই, অর্থ সম্মান দুটোই পাই’ এই প্রতিপাদ্য নিয়ে টাঙ্গাইলের নাগরপুরে বৈদেশিক কর্মসংস্থানের জন্য দক্ষতা ও সচেতনতা শীর্ষক প্রচার, প্রেসব্রিফিং ও সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়েছে।

 আজ সোমবার,২৭ জুলাই ২০২০ খ্রি.সকাল-১০.০০ টায় উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে প্রবাসী কল্যান ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রনালয়ের অর্থায়নে উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে সেমিনারের আয়োজন করেছে। 

নাগরপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার সৈয়দ ফয়েজুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সেমিনারে মূল প্রতিপাদ্য বিষয় উপস্থাপন করেন কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র টাঙ্গাইলের অধ্যক্ষ প্রকৌশলী কামরুজ্জামান। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন টাঙ্গাইল -৬ (নাগরপুর -দেলদুয়ার) আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য  জ্বনাব মো.আহসানুল ইসলাম টিটু।

সেমিনারে আরও উপস্থিত ছিলেন, নাগরপুর উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) তারিন মসরুর, নাগরপুর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মো. হুমায়ুন কবীর, নাগরপুর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আব্দুল মতিন বিশ্বাস।

এছাড়াও সেমিনারে উন্মুক্ত আলোচনায় অংশ নেন বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান, সাংবাদিক, সুশীল সমাজ, শিক্ষক, পেশাজীবী ও কৃষিজীবি প্রতিনিধিবৃন্দ প্রমুখ।

অনলাইন ক্লাসে দুর্ভোগঃ জবি শিক্ষার্থীর আবেগঘন স্ট্যাটাস

অনলাইন ক্লাসে দুর্ভোগঃ জবি শিক্ষার্থীর আবেগঘন স্ট্যাটাস





জবি প্রতিনিধিঃ ইউজিসির নির্দেশে জুলাইয়ের প্রথম সপ্তাহ থেকে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় শুরু করেছে অনলাইন ক্লাস। অনলাইন ক্লাসগুলো সাধারণত জুম কিংবা গুগল মিটের মাধ্যমে হয়ে থাকে যার জন্য প্রয়োজন স্মার্ট ডিভাইস আর উচ্চগতির ইন্টারনেট ব্যবস্থা। বাংলাদেশে গ্রামাঞ্চলে ইন্টারনেট গতির অবস্থা খুবই নাজুক। ইতোমধ্য করোনার কারনে বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ থাকায় বেশিরভাগ শিক্ষার্থী নিজ নিজ গ্রামের বাড়িতে অবস্থান করছে। ডিভাইস কিংবা ইন্টারনেটের কারনে অনেক শিক্ষার্থী ক্লাসে অংশগ্রহণ করতে বেগ পেতে হচ্ছে। তাছাড়া উত্তরাঞ্চলের বিভিন্ন জায়গায় বন্যার কারনে অনেক শিক্ষার্থী ক্লাস থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। অনেক শিক্ষার্থী ক্লাস করতে না পারায় ইয়ার ড্রপের ভয়ে বিভিন্নভাবে চেষ্টা করে ক্লাসে অংশগ্রহণ করার জন্য। তেমনই একজন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের হিসাববিজ্ঞান বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী মৃদুল হাসান। 

রবিবার (২৬ জুলাই) সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে একটি স্ট্যাটাস দিয়ে জানিয়েছেন কিভাবে তিনি কষ্ট করে চালিয়ে যাচ্ছেন অনলাইন ক্লাস। কিন্তু কতদিন! 

ফেইসবুক স্ট্যাটাসটি ছিলো এমন, আমি মৃদুল হাসান, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ি আমাকে অনলাইনে ক্লাস করতে হয়। আমাকে প্রতিদিন এমবি কিনতে হয়। অন্যের কাছ থেকে ফোন চেয়ে নিতে হয় ক্লাস করার জন্যে (নিজের স্মার্ট ফোন নাই)। আমাকে ক্লাস করার জন্য নৌকা ভাড়া করতে হয় টাওয়ারের কাছে যাওয়ার জন্য (নাইলে নেটওয়ার্ক পাই না)। আমাকে প্রতিদিন বন্ধুদের কাছ থেকে টাকা ধার করতে হয় এমবি কেনার জন্য। আমাকে পরিক্ষায় পাস করার জন্য ক্লাস করা উচিত কারণ পরিবারের সঞ্চয়, আশা ও স্বপ্ন সবই আমাকে ঘিরে।

সমস্যাটা যেখানে, আমার বাড়ি নাটোর জেলার গুরুদাসপুর উপজেলাধীন মশিন্দা গ্রামে (চলনবিল এর প্রাণ কেন্দ্র)। বাড়ির পাশে বন্যার পানি থৈ থৈ করছে, রাস্তা-ঘাট সব ডুবে গেছে এমন কি ঘরের মধ্যেও কখন জানি পানি ঢুকে পরে। যেখানে ফোনে কথা বলার নেটওয়ার্ক পাই না (২জি), সেখানে ৩জি/৪জি নেটওয়ার্ক তো বিলাসিতা ছাড়া কিছুই না। বন্যার কারনে বিলের ধানগুলোতো ইতোমধ্যে ডুবেই গেছে। নিম্নবিত্ত পরিবারের আরো তো সমস্যা আছেই!
ফলাফল টা কি হবে, ফোন নাই, এমবি নাই, নেটওয়ার্ক নাই তাই ক্লাস করা হবে না। পরীক্ষার খাতা ফাঁকা যার জন্য সেমিস্টার ড্রপ।পরিবারের স্বপ্ন ভঙ্গ, গ্রামের মানুষের স্বপ্ন ভঙ্গ ও বন্ধুদের স্বপ্ন ভঙ্গ। যার কারণে ছেলেটির স্বপ্ন ভঙ্গ, হতাশা ও সব শেষে যা হয়ে থাকে সচারাচর তাই হয়তো হবে। দোষটা কে নিবে? করোনা/বন্যা/নেটওয়ার্ক? নাকি নিম্নবিত্ততা?

জানিনা কি আছে জীবনে, জীবন আমার, স্বপ্ন আমার, ভবিষ্যৎ আমার কিন্তু এগুলো ভেঙ্গে ফেলার অধিকার অন্যের!

ঝিনাইদহে করোনা রুগিদের জন্য ১০ লাক্ষ টাকা দামের দুটি মেশিন দিলেন, এমপি, সমি

ঝিনাইদহে করোনা রুগিদের জন্য ১০ লাক্ষ টাকা দামের দুটি মেশিন দিলেন, এমপি, সমি





খোন্দকার আব্দুল্লাহ বাশার। 
( ঝিনাইদহ জেলা প্রতিনিধি) 



ঝিনাইদহে করোনা হাসপাতালে করোনা রুগিদের জন্য উন্নত মানের দুটি হাইফ্লো ন্যাজাল ক্যানোল মেশিন দিলেন ঝিনাইদহ ২ আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য জনাব তাহ্জীব সিদ্দিকী সমি, এই মেশিন ভেন্টিলেটর এর বিকল্প হিসাবে কাজ করবে, করোনা রুগিদের প্রধান সমস্যা হলো শ্বাসকষ্ট এই শ্বাসকষ্টের সময় অক্সিজেন ছাড়া দ্বিতীয় কোন চিকিৎসা নেই।

এর আগে ঝিনাইদহ করোনা হাসপাতালে যে প্রযুক্তি ছিলো সেটা দিয়ে মিনিটে ৫ লিটার অক্সিজেন সরবরাহ করা যেত নতুন এই মেশিন দিয়ে এখন থেকে মিনিটে ৭০ লিটার অক্সিজেন সরবরাহ করা যাবে বলে জানান সিভিল সার্জন ডা.সেলিনা বেগম ,

এই মেশিন এমপি সমি সিদ্দিকী’ পক্ষ থেকে সিভিল সার্জন সেলিনা বেগমের নিটক হস্তান্তর করেন ঝিনাইদহ পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি ঝিনাইদহ জেলা স্বাস্থ্য কমিটির সদস্য জীবন কুমার বিশ্বাস এবং যুবলীগ নেতা আলহাজ্ব বাসের আলম সিদ্দিকী, এ সময় আরে উপস্থিত ছিলেন,

ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. হারুনুর রশিদ, ডা. প্রসেনজিৎ বিশ্বাস পার্থ, মেডিকেল অফিসার সিভিল সার্জন অফিস ও করোনা সেলের মূখপাত্র, ডা. জাকির হোসেন, মেডিসিন কনসালটেন্ট ও প্রধান সমন্বয়কারী কোভিট১৯ প্রতিরোধ কমিটি।

দিনাজপুরে জেলা আনসার ভিডিপি’র সদস্যদের মাঝে করোনা প্রতিরোধে ফেসসেল মাস্ক ও ঔষধ সামগ্রী বিতরণ

দিনাজপুরে জেলা আনসার ভিডিপি’র সদস্যদের মাঝে  করোনা প্রতিরোধে ফেসসেল মাস্ক ও ঔষধ সামগ্রী বিতরণ




মামুনুর রশিদ,দিনাজপুর প্রতিনিধি ॥ বঙ্গবন্ধু’র জন্মশত বার্ষিকী উদযাপণ উপলক্ষে বৈশিক মহামারি করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) প্রতিরোধে সামাজিক দুরুত্ব’র নিয়ম মেনে জেলা আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনী, দিনাজপুর এর সেচ্ছাসেবী ভিডিপি সদস্য/সদস্যাদের মাঝে ফেসসেল, মাস্ক, ও ঔষধ সামগ্রী বিতরণ করা হয়। ২৭ জুলাই সোমবার জেলা আনসার ভিডিপি কার্যালয়ে করোনাভাইরাস(কোভিড-১৯) প্রতিরোধে ১১ আনসার ব্যাটালিয়নের পরিচালক মোঃ আব্দুল মজিদ এর ব্যবস্থাপনায় দিনাজপুর সদরের জেলার ভিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সরকারি, বে-সরকারি প্রতিষ্ঠান , হাসপাতাল, মেডিকেল কলেজ এবং ব্যাংকসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে দায়িত্বে নিয়োজিত সেচ্ছাসেবী আনসার ভিডিপি সদস্য/সদস্যাদের মাঝে করোনা প্রতিরোধে নিজস্ব সুরক্ষা হিসেবে ফেসসেল, মাস্ক, জিংক ট্যাবলেট, ভিটামিন সিভিট ট্যাবলেট,সহ বিভিন্ন ঔষধ সামগ্রী বিতরণ বিতরণ করা হয়।জেলার ১৩টি উপজেলার মোট ৭১১জন আনসার ও ভিডিপি সদস্যদের মাঝে করোনা প্রতিরোধে ফেসসেল মাস্ক ও ঔষধ সামগ্রী বিতরণ করা হয় ।উক্ত ফেসসেল, মাস্ক ও ঔষধ সামগ্রী বিতরণ বিতরণ করেন দিনাজপুর জেলা আনসার ও ভিডিপি’র সহকারী কমান্ড্যান্ট মোঃ ইবনুল হক ও সদর উপজেলা আনসার ভিডিপি অফিসার মোঃ আবু সাঈদ। এসময় উপস্থিত ছিলেন সদর উপজেলার আনসার ভিডিপি’র প্রশিক্ষক মোঃ পলাশ মিয়া ও অন্যান্য আনসার ভিডিপি’র কর্মকর্তাবৃন্দ।

দিনাজপুরে স্বেচ্ছাসেবকলীগের ২৬তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত

দিনাজপুরে স্বেচ্ছাসেবকলীগের ২৬তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত




মামুনুর রশিদ,দিনাজপুর প্রতিনিধি ॥ দিনাজপুরে বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবকলীগের ২৬তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত হয়েছে। ২৭ জুলাই সোমবার প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধাঞ্জলী, বৃক্ষ রোপন ও করোনা মোকাবেলায় মাস্ক বিতরন করেন দিনাজপুর জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগ। এ ছাড়া শহর  ও কোতয়ালী স্বেচ্ছাসেবকলীগ এ কর্মসুচী পালন করে। এ সময় উপস্থিত ছিলেন দিনাজপুর সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মোঃ ইমদাদ সরকার, শহর আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি রায়হান কবীর সোহাগ, সাধারন সম্পাদক খালেকুজ্জামান রাজু, দিনাজপুর জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সাধারন সম্পাদক জাকারিয়া জাকির, সহ-সভাপতি সুমন পারভেজ, অমিত চৌধুরী রানা, সাংগঠনিক সম্পাদক তছলিম উদ্দীন, প্রচার সম্পাদক আরিফুল ইসলাম ডলার, সহ-প্রচার সম্পাদক সজিবুর রহমান সজিব, শহর স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি রাকিবুল হাসান সবুজ, সাধারন সম্পাদক মারুফ রাসেল, দিনাজপুর সদর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি আব্দুস সালাম সরকার, সাধারন সম্পাদক রাকিবুল ইসলাম রাকিব প্রমুখ। এ ছাড়া দিনাজপুর জেলা আওয়ামীলীগ কার্যালয়ে মিলাদ মাহফিল ও দোয়া অনুষ্ঠিত হয়।

সংসদ সদস্য ইসরাফিল আলমের মৃত্যুতে এমপি গোপালের শোক

সংসদ সদস্য ইসরাফিল আলমের মৃত্যুতে এমপি গোপালের শোক




মামুনুর রশিদ, দিনাজপুর প্রতিনিধিঃ  নওগাঁ-৬ (আত্রাই-রাণীনগর) আসনের সংসদ সদস্য, নওগাঁ জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও শ্রমিক নেতা ইসরাফিল আলমের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন দিনাজপুর-১ (বীরগঞ্জ-কাহারোল) আসনের সংসদ সদস্য মনোরঞ্জন শীল গোপাল গভীর শোক প্রকাশ করেছেন। তিনি শোক সন্তোপ্ত পরিবার-পরিজনের প্রতি আন্তরিক সমবেদনা জ্ঞাপন করেছেন।
২৭ জুলাই সোমবার গণমাধ্যমে প্রেরিত এক শোক বার্তায় তিনি এ শোক প্রকাশ করেন। শোক বার্তায় তিনি বলেন, ইসরাফিল আলম জনতার অধিকার আদায়ে একজন সম্মুখ যোদ্ধা ছিলেন। তিনি তাঁর জীবনের শেষ দিন পর্যন্ত মানুষের জন্য কাজ করে গেছেন। তার মৃত্যুতে যে শূন্যতার সৃষ্টি হলো- তা কোনদিন পূরণ হবার নয়। সাংসদ ইসরাফিল শ্রমিকজীবি মানুষের বঞ্চনা নিরসনেও আমৃত্যু কাজ করে গেছেন। সেজন্য তার এলাকার মানুষ তাকে চিরদিন শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করবে। আমি তাঁর বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করছি। এমপি গোপাল শোক সন্তোপ্ত পরিবারবর্গের প্রতি আন্তরিক সমবেদনা জ্ঞাপন করেছেন। 
নওগাঁ জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও শ্রমিক নেতা ইসরাফিল আলম এমপি২৭ জুলাই সোমবার সকাল ৬টায় রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৫৪ বছর। তীব্র শ্বাসকষ্ট নিয়ে সংসদ সদস্য ইসরাফিল আলম গত ১৭ জুলাই থেকে স্কয়ার হাসপাতালে ভেন্টিলেশনে ছিলেন। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, ২ মেয়ে ও ১ ছেলেসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। গত ৬ জুলাই তাকে প্রথম ঢাকার স্কয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তখন তার শরীরে করোনাভাইরাস ধরা পড়ে। সেখানে কিছু দিন চিকিৎসা নেয়ার পর কিছুটা সুস্থ হন। পরে পরীক্ষা করে করোনা নেগেটিভ রিপোর্ট আসে তার। এ অবস্থায় গত ১৭ জুলাই আবারও অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে আবার স্কয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ২৪ জুলাই রাত ১১টায় প্রচ- শ্বাসকষ্ট দেখা দিলে তাকে ভেন্টিলেশন সাপোর্ট দেয়া হয়। সোমবার সকালে তিনি সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।
উল্লেখ্য, ১৯৬৬ সালে রাণীনগর উপজেলার গোনা ইউনিয়নের ঝিনা গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন ইসরাফিল আলম। ২০০৮ সালে আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন পেয়ে বিপুল ভোটে বিজয়ী হন তৎকালীন ঢাকা মহানগর শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক ইসরাফিল আলম। সেই সংসদে তিনি শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির সভাপতি ছিলেন। বর্তমান সংসদে ওই কমিটির পাশাপাশি বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির সদস্য তিনি।

অসুস্থ ইউপি সদস্যের খোঁজখবর নিলেন উপজেলা আ'লীগের সাধারন সম্পাদক শম্ভুজিত

অসুস্থ ইউপি সদস্যের খোঁজখবর নিলেন উপজেলা আ'লীগের সাধারন সম্পাদক শম্ভুজিত




আহসান উল্লাহ বাবলু উপজেলা প্রতিনিধিঃ    : আশাশুনি উপজেলার শোভনালী ইউনিয়নের অসুস্থ ইউপি সদস্য আব্দুল হান্নান পাড়ের খোঁজখবর নিতে তার বাড়িতে উপস্থিত হলেন উপজেলা আ'লীগের সাধারন সম্পাদক, সাতক্ষীরা ০৩ আসনের জাতীয় সাংসদ প্রতিনিধি শম্ভুজিত মন্ডল। রবিবার সন্ধ্যার পরে ইউনিয়নের গোদাড়া গ্ৰামের নিজ বাসভবনে ইউপি সদস্যের শরীরের খোঁজ খবর নেন তিনি। এসময় সফর সঙ্গী ও অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, আশাশুনি রিপোর্টার্স ক্লাবের সভাপতি ও যয়যাত্রা টেলিভিশনের বিশেষ প্রতিনিধি (সাতক্ষীরা) মোস্তাফিজুর রহমান, ইউপি সদস্য উদয় কান্তি বাছাড়, বদরতলা বাজার মসজিদের সাধারণ সম্পাদক আলাউদ্দিন মোড়ল, ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ সভাপতি সাজ্জাদ হোসেন, দোফাদার মজিদ প্রমুখ।

কেশবপুরে বুড়িভদ্রা নদীতে বাঁধ,নিম্নাঞ্চলের চাষের জমি প্লাবিত

কেশবপুরে বুড়িভদ্রা নদীতে বাঁধ,নিম্নাঞ্চলের চাষের জমি প্লাবিত




মোরশেদ আলম
যশোর ভ্রাম্যমাণ প্রতিনিধি 

যশোর কেশবপুরে পানি উন্নয়ন বোর্ড নদীতে বাঁধ দিয়ে নদী খননেন কাজ চালাচ্ছে ফলে অল্প বৃষ্টিতে কেশবপুর পৌরসভার নিম্নাঞ্চাল গুলো প্লাবিত হচ্ছে। তাই অনেক দিন থেকে এলাকার মানুষের দাবী ছিল বৃষ্টির আগে বাঁধ সরানোর। এবিষয়ে একাধিবার পানি উন্নয়ন বোর্ড কর্মকর্তার কথা হলে তারা জানান ১৫ জুলাই বাঁধ সরানো হবে।

গত ২২ জুলাই হরিহর নদীর বাঁধ সরালেও বুড়িভদ্রা(পাচারেই প্রাইমারী স্কুলের সংলগ্ন) নদীর বাঁধ থেকে গেছে। ফলে সমস্যা যা থাকার তাই থেকেই গেছে। আগের টানা বৃষ্টির ফলে কেশবপুর পৌরসভার অধিকাংশ চাষ জমি প্লাবিত হয়েছে। বৃষ্টির পানিতে হরিহর নদী ও বুড়িভদ্রা নদীর দু’কুল প্লাবিত হওয়ায় শত শত বিঘা জমির পাট নষ্ট আবার কোথায় ধানের জমি নষ্ট হয়ে গেছে। কেশবপুর পৌরসভার সাবদিয়ার গ্রামের পাট চাষি হাফিজুর জানান পাট প্রায় কাটার মত হয়েছে। আর ১৫-২০ দিনে পরে পাট কাঁটতেন তিনি। কিন্তু পানির কারনে পাট গাছ আর বৃদ্ধি পাচ্ছে না।
ফলে জমিতেই এই পাট নষ্ট হবে। উপজেলা কৃষি অফিস জানায়, এ বছর উপজেলায় ৪ হাজার ১০ হেক্টর জমিতে পাট চাষের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়। মৌসুমের শুরুতেই আগাম বৃষ্টি হওয়ায় কৃষকরা উঁচু জমির পাশাপাশি নিচু জমিতে পাটের আবাদ করায় লক্ষ্যমাত্রা থেকে ৪শ’ হেক্টর বেশি জমিতে পাটের আবাদ হয়েছে। কিন্তু বৃষ্টির পানির কারনে মৌসুমে পাট উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা অর্জন নিয়ে সংশয়সহ কৃযকরা ক্ষতিগ্রস্থ হওয়ার আশঙ্কায় ভুগছেন। অনেকের নতুন ধানের বীজ তলা তলিয়ে গেছে পানিতে।

অনেক ধান গাছ পানির মধ্যে। পৌরসভার বিভিন্ন অঞ্চল ঘুরে দেখা যায়, কেশবপুর পৌরসভার ভবানীপুর, নোনা মাঠ, হাবাসপোল ইদগাহ মাঠ, হাবাসপোল প্রাইমারী স্কুলের মাঠ, বায়সা-কালাবাসা নতুন ব্রিজের মাঠ, সাবদিয়া-বায়সা মাঠ, আলতাপোল বাজার অংশে টিএন্ডটি পাশের বিল, ব্রাক অফিসের পাশের বিল, আলতাপোল ৫নং ওয়ার্ডের কাজী পাড়া, গাজী পাড়ার বিল ও গোলাঘাটা-আলতাপোল বিল পানিতে ডুবে গেছে। কোথাও পাটের আবাদ , আবার কোথাও ধানের আবার কোথাও নতুন করে জমি তৈরি করা হচ্ছে। তাই এ অঞ্চলের মানুষের দাবী অতি দ্রুত বুড়িভদ্রা নদীর বাঁধ সরানোর যাতে নতুন করে  কৃষি জমি আর প্লাবিত না হয়।

মোংলায় সেচ্ছাসেবক লীগের ২৬ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন

মোংলায় সেচ্ছাসেবক লীগের  ২৬ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন




মোঃএরশাদ হোসেন রনি, মোংলা
সোমবার সকাল ১১টায় মোংলা আওয়ামীলীগ এর দলীয় কার্যালয়ে  মোংলা উপজেলা ও পৌর সেচ্ছাসেবক লীগের আয়োজনে সেচ্ছাসেবক লীগের ২৬ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন করা হয়।

প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন মোংলা উপজেলা সেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি ইমরান বিশ্বাস।এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন মোংলা উপজেলা উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মোঃইকবাল হোসেন,   মোংলা উপজেলা আওয়ামীলীগ এর সাধারন সম্পাদক মোঃইব্রাহীম হোসেন,মোংলা পৌর আওয়ামীলীগ এর সাধারন সম্পাদক শেখ কামরুজ্জামান জসিম,মোংলা পৌর যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ আল মামুন, মোংলা পৌর যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এরশাদ হোসেন রনি, উপজেলা সেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক হাওলাদার তরিকুল ইসলাম,  মোংলা পৌর সেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি মিজান তালুকদার , সাধারণ সম্পাদক ফাহিম হাসান অন্তর,মোংলা উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি ইয়াছিন আরাফাত,মোংলা পৌর ছাত্রলীগ এর সভাপতি মোয়াজ্জেম হোসেন রানা, সাধারণ সম্পাদক শেখ শাহারুখ বাপ্পি সহ প্রমূখ।

আলোচনা সভা শেষে মিলাদ মাহফিল ও দোয়া অনুষ্ঠিত হয়।দোয়া অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন কারী মোঃ ইব্রাহীম হোসেন।

এ উপলক্ষে বৃক্ষরোপন কর্মসূচিও পালন করা হয়।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ঈদুল আযহার ত্রাণ বিতরণ

মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ঈদুল আযহার ত্রাণ বিতরণ



মীরকাশেম,কক্সবাজার। 
চকরিয়া উপজেলার  ফাঁসিয়াখালীতে আসন্ন
পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষ্যে, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিল থেকে ১০ কেজি করে চাউল বিতরণের উদ্বোধন  করেছেন ফাঁসিয়াখালী  ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান চকরিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব গিয়াস উদ্দিন চৌধুরী। 
২৭ জুলাই ২০২০ তারিখ সকাল সাড়ে আটটায় ফাঁসিয়াখালী ইউনিয়ন পরিষদে উদ্বোধন হওয়া এই চাউল বিতরণ  কর্মসূচিতে ইউনিয়নের ১৭শ ১৫ পরিবারের মাঝে এই চাউল বিতরণ করা হচ্ছে বলে নিশ্চিত করেন চেয়ারম্যান গিয়াস চৌধুরী। 
তিনি আরও বলেন এই মাসের ১৩ তারিখে ইউনিয়নের ১৪শ ২৪ পরিবারে ১০ কেজি করে চাউল বিতরণ করা হয়েছে। ওদের বাদ রেখে আজকে আরও ১৭শ ১৫ পরিবারের লোকজন এই সাহায্য পাচ্ছেন।
 এসময় ইউনিয়ন পরিষদের সকল সদস্যগণ, ইউপি সচিব নুরুল কবির ও সাংবাদিক আবুল মনসুর মোঃ মহসিন উপস্থিত ছিলেন।

না ফেরার দেশে চলে গেলেন এমপি ইসরাফিল আলম

না ফেরার দেশে চলে গেলেন এমপি ইসরাফিল আলম

  




মোঃ ফিরোজ হোসাইন   
রাজশাহী ব্যুরো

নওগাঁ- ৬ (আত্রাই-রাণীনগর) আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ইসরাফিল আলম তীব্র শ্বাসকষ্ট নিয়ে রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন (ইন্না.......রাজিউন)। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিলো ৫৩ বছর। তিনি স্ত্রী, এক ছেলে ও ২ মেয়েসহ অসংখ্য গুনগ্রাহী রেখে গেছেন। 

গত শনিবার সন্ধ্যায় ফুসফুস ইনফেকশনে আক্রান্ত হয়ে তাকে হাসপাতালে নিলে চিকিৎসকরা লাইফ সাপোর্টে রাখেন। সোমবার সকাল ৬টা ২০মিনিটে সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয় বলে নিশ্চিত করেছেন স্ত্রী সুলতানা পারভীন বিউটি। 

ইসরাফিল আলমের স্ত্রী সুলতানা পারভীন বিউটি জানান, গত ৬জুলাই অসুস্থতা নিয়ে তিনি প্রথম এ হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন। তখন তার করোনা ধরা পড়ে। এখানে কিছু দিন চিকিৎসা নেয়ার পর তিনি বাড়ি চলে যান। পরে পরীক্ষা করে করোনা নেগেটিভ আসে। এ অবস্থায় গত ১৭ জুলাই আবারও অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে স্কয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। গত শুক্রবার রাত ১১টা দিকে তার প্রচ- শ্বাসকষ্ট দেখা দিলে তাকে ভেন্টিলেশন সাপোর্ট দেয়া হয়। তিনি আরো বলেন, বাসায় আনার পর ১৭ জুলাই তার কাশির সঙ্গে রক্ত আসে। ওই দিন আমরা তাকে রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে ভর্তি করি। এছাড়াও তিনি হৃদরোগ ও ডায়াবেটিস রোগে আক্রান্ত ছিলেন।

এক সময়ের রক্তাক্ত জনপদ হিসেবে পরিচিত ছিলো জেলার রাণীনগর ও আত্রাই উপজেলা। বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের সময় সর্বহারারা দিনে-দুপুরে প্রকাশ্যে এই জনপদে মানুষকে জবাই করে রাখতো। এরপর জেএমবির তান্ডব। অশান্তি আর হাহাকারের বাতাস বইতে শুরু করে এই অঞ্চলে। ঠিক তখনই আর্বিভাব ঘঠে শ্রমিক নেতা ইসরাফিল আলমের। ২০০১সালের নির্বাচনে প্রথমে তার পরাজয় হয়। এরপর যখন সর্বহারা ও জেএমবির অত্যাচার মাত্রারিক্ত হয়ে গেলো তখন এই অঞ্চলের মানুষ ২০০৮সালে নৌকা মার্কায় ৩৬বছর পর ভোট দিয়ে ধানের শীষের মনোনীত প্রার্থী আলমগীর কবিরকে পরাজিত করে বিএনপির দুর্গ হিসেবে খ্যাত নওগাঁ-৬ (আত্রাই-রাণীনগর) আসনটিতে বিজয়ী করেন শ্রমিক নেতা ইসরাফিল আলমকে। এরপর ২০১৮ সালেও তিনি সেই আলমগীর কবীরকে পরাজিত করে ৩য়বারের আবার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। মিডিয়া ব্যক্তিত্ব ইসরাফিল আলম তার দেওয়া কথা রেখেছেন। তিনি এমপি হওয়ার পর আওয়ামী লীগ সরকারের সার্বিক সহযোগিতায় এই রক্তাক্ত জনপদ থেকে জবাই, হানাহানি, লুণ্ঠন, ছেলে ও স্বামী হারানোর কান্না থেকে রক্ষা করেছেন রাণীনগর ও আত্রাই উপজেলার মানুষকে। বর্তমানে তার চৌকশ নেতৃত্বের কারণে এই অঞ্চলে শান্তির সুবাতাস বইছে। যার কারণে এই অঞ্চলের মানুষ কখনই তার বিকল্প খুঁজতে চাননি।  
তিনি নওগাঁ-৬ (আত্রাই-রাণীনগর) আসনে টানা তিনবার আওয়ামী লীগের এমপি হিসেবে নেতৃত্ব প্রদান করছেন। এই ক্ষণজন্মা ব্যক্তির জন্ম রাণীনগর উপজেলার গোনা ইউনিয়নের ঝিনা গ্রামে ১৯৬৭সালে মরহুম আজিজুর রহমানের সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে। তিতাস গ্যাস কোম্পানিতে মিটার রিডার হিসেবে তিনি দীর্ঘদিন চাকরি করেছেন। তার রাজনৈতিক শিক্ষাগুরু প্রয়াত আহসান উল্লাহ মাস্টার। তিনি ঢাকা মহানগর শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্বে ছিলেন। এরপর চাকরি থেকে ইস্তফা দিয়ে তিনি পুরোপুরি রাজনীতিতে আত্মনিয়োগ করেন। বর্তমানে তিনি বাংলাদেশ পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় ফেডারেশনের সভাপতির দায়িত্বে আছেন। ইসরাফিল আলম অনেক গুনেগুনান্বিত। তিনি বর্তমানে টকশোর জগতে এক অনন্য ব্যক্তিত্ব। এছাড়াও তিনি একজন তারকা কণ্ঠশিল্পী ও লেখক। 

সাংসদ ইসরাফিল আলমের সহধর্মিনী সুলতানা পারভীন বিউটি বলেন, ইসরাফিল আলম আত্রাই-রাণীনগর উপজেলার মানুষদের জন্য নিজের জীবন বাজি রেখে এই অঞ্চলের মানুষদের সুখ আর শান্তির দায়ভার নিজের কাঁধে তুলে নিয়েছিলেন। দীর্ঘসময় তিনি এই অঞ্চলের মানুষদের সুখে-দু:খে পাশে থেকেছেন। নিজের এলাকার মানুষদের শান্তির কথা ভেবে তিনি সংসার, নিজের স্ত্রী ও সন্তানদের ভুলে থাকতেন। করোনাভাইরাসের এই সংকটময় সময়ে তিনি পরিবারকে ত্যাগ করে দীর্ঘ প্রায় ৩মাস তিনি এসে রাণীনগর ও আত্রাই উপজেলার মানুষদের পাশে থেকে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করেছেন। তিনি আর আমাদের মাঝে নেই। আমাদের সকলকে কাঁদিয়ে তিনি না ফেরার দেশে চলে গেছেন। আপনারা স্বামীর জন্য মহান আল্লাহর কাছে দোয়া করবেন যেন আল্লাহ তাকে মাফ করে ক্ষমা করে দেন এবং জান্নাতবাসী করেন।

যশোরে খাদ্য গুদামের ১৫ লাখ নতুন বস্তার পরিবর্তে পুরাতন বস্তা কিনে সাত কোটি টাকা লোপাট

যশোরে খাদ্য গুদামের ১৫ লাখ নতুন বস্তার পরিবর্তে পুরাতন বস্তা কিনে সাত কোটি টাকা লোপাট



সুমন হোসেন, যশোর জেলা প্রতিনিধি। 
ধান চাল সংগ্রহের জন্যে ১৫ লাখ নতুন বস্তার পরিবর্তে পুরাতন বস্তা কিনে সাত কোটি টাকা লোপাট করেছেন যশোর সদর খাদ্যগুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আশরাফুজ্জামানসহ একটি চক্র। এ ঘটনায় তাকে তেরখাদা উপজেলায় শাস্তিমূলক বদলি করা হয়েছে। আজ ২৭ জুলাই আশরাফুজ্জামানকে যশোর ছাড়তে হবে, অন্যথায় ২৮ জুলাই থেকে কর্মবিমুক্ত বলে গণ্য হবেন।অভিযোগ আছে, এই লুটপাটে আশরাফুজ্জামান একাই পকেটে ভরেছেন পাঁচ কোটি টাকা। বাকি দু’কোটি টাকার ভাগ পেয়েছেন আয়ান জুটমিল ও বিভিন্ন গুদাম কর্তারা।খাদ্য বিভাগের ইতিহাসে এটি বড় ধরনের দুর্নীতি বলে জানিয়েছেন খোদ খাদ্য বিভাগের অনেক কর্মকর্তা। এ ব্যাপারে দু’দফা তদন্ত কমিটির প্রতিবেদনের পর অভিযুক্ত খাদ্যগুদাম কর্মকর্তা দাপুটে সিবিএ নেতা আশরাফুজ্জামানকে শাস্তিমূলক বদলি করা হলেও তিনি নতুন কর্মস্থলে যোগদানে টালবাহানা করে আসছেন। তবে যশোর গুদামে আজ তার শেষ দিন বলে পরিষ্কারভাবে জানিয়েছেন খুলনা আঞ্চলিক খাদ্য নিয়ন্ত্রক মাহবুবুর রহমান।খাদ্য বিভাগের একধিক সূত্র জানিয়েছে, যশোর সদর খাদ্য গুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আশরাফুজ্জামান খাদ্য পরিদর্শক সমিতির খুলনা বিভাগীয় শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক। এ সুযোগ কাজে লাগিয়ে তিনি খুলনার আয়ান জুট মিল কর্তৃপক্ষের সাথে যোগসাজস করে ১৫ লাখ পুরাতন বস্তা নিয়ে তা বিভাগের বিভিন্ন জেলার খাদ্য গুদামে প্রতিস্থাপনের সুযোগ করে দেন। এর মধ্যে দুই লাখ বস্তা আগে একবার ব্যবহার করা হয়েছিল। বাকি ১৩ লাখ বস্তা ব্যবহার করা না হলেও তা ২০১৪ সালের লোগো সম্বলিত। এই ১৫ লাখ পুরাতন বস্তা চালিয়ে আশরাফুজ্জামান হাতিয়েছেন প্রায় ৫ কোটি টাকা। চলতি বছরে বোরো ধান-চাল সংগ্রহ উপলক্ষে এ বস্তা খুলনা বিভাগের বিভিন্ন খাদ্যগুদামে কাজে লাগানো হয়েছে।গত ৪ জুলাই যশোর সদর খাদ্য গুদামে নতুন বস্তা সরিয়ে পুরাতন বস্তা মজুদ করা হচ্ছে এমন একটি অভিযোগ খাদ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অবগত হন। তিনি খুলনার আঞ্চলিক খাদ্য নিয়ন্ত্রক মাহবুবুর রহমানকে তদন্তের নির্দেশ দেন। আঞ্চলিক খাদ্য নিয়ন্ত্রক ৫ জুলাই ঢাকা থেকে বিমানযোগে যশোর পৌঁছান। সকাল ১০ টায় তিনি যশোর সদর গুদামে উপস্থিত হন। এর আগে সকালে খুলনা থেকে সহকারী রসায়নবিদ ইকরামুল কবীর সেখানে উপস্থিত ছিলেন। যশোর ৬নং গুদামের বস্তার মজুদ পরীক্ষা করে পুরাতন বস্তা চটের মোড়কে লোহার পাত দিয়ে বেল করা দেখতে পান। প্রতিটি বেলে ৪শ’ পিস বস্তা। যার সবই ছিল পুরাতন এবং ব্যবহৃত। একই অবস্থা শংকরপুর ২ নং ক্যাম্পাসের গুদামে। সূত্রের দাবি, সরকার কর্তৃক চাল ধান সংগ্রহ কাজে ব্যবহারের জন্য মিল থেকে নতুন ১৫ লাখ বস্তা প্রতিটি ৭৯/ টাকা দরে ক্রয় করা হয়েছে। যার দাম ১১ কোটি ৫০ লাখ টাকা। ওসিএলএসডি নতুন বস্তা না নিয়ে মিলারের সাথে যোগসাজসে পুরাতন বস্তা গুদামে গ্রহণ করেছেন। যার দাম তিন কোটি ৭৫ লাখ টাকা। এ ঘটনায় চক্রটি সাত কোটি টাকা বাণিজ্য করেছে। এর আগে জুন মাসের শেষার্ধে ৩টি বস্তার ট্রাক গুদামে আনলোডের জন্য আসে। শ্রমিকরা বস্তা খালাসের সময় দেখতে পান বস্তা পুরাতন এবং একাধিক বার ব্যবহৃত। উপস্থিত শ্রমিক, চালকল মালিক এবং ডিলার, ত্রাণের খাদ্যশস্য গ্রহণকারী জনপ্রতিনিধিদের প্রবল আপত্তির মুখে বস্তা খালাস বন্ধ রাখা হয়। কিন্তু ট্রাক ফেরত পাঠানো হয়নি। ৩ দিন পর সন্ধ্যায় বস্তা আনলোড করা হয়। এভাবে একের পর এক পুরাতন বস্তার ট্রাক আসতে থাকে। ওসিএলএসডি বিভিন্ন মিলে সংগ্রহের জন্য এই বস্তা দিয়েছেন। সমঝোতার ভিত্তিতে কিছু বস্তা ঝিকরগাছা এবং নাভারণ এলএসডিতে পাঠানো হয়েছে। এছাড়া পুরাতন ত্রাণের চাল সংগ্রহ দেখিয়ে বিভিন্ন খামালের মধ্যে রাখা আছে। চারিপাশে নতুন চালের বস্তা দিয়ে সাজিয়ে রাখা হয়েছে। বাইরে থেকে বুঝা যায় না। আঞ্চলিক খাদ্য নিয়ন্ত্রক বস্তা পরীক্ষা করে এলএসডিতে লাঞ্চ সেরে খুলনা ফিরে যান। খুলনা ফিরে তিনি ৩ সদস্যের একটি কমিটি করেন। কমিটির আহবায়ক খুলনা জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক তানভীর হোসেন, সহকারী রসায়নবিদ সদস্য ইকরামুল কবির এবং কারিগরী টিসিএফ হাফিজুর রহমান। কিন্তু ধুরন্ধর আশরাফুজ্জামান কমিটিকে ম্যানেজ করার চেষ্টা করেন। যে কারণে কমিটি তদন্তে কালক্ষেপণ করে এক সপ্তাহ পরে তদন্তে আসেন বলে অভিযোগ রয়েছে। এর মধ্যে ওসিএলএসডি এবং ধুরন্ধর উপ খাদ্যপরিদর্শক আলাউদ্দিন বিশ্বাস অনেক বস্তা চালকলে সরবরাহ করেন। একটি ট্রাক ৫০ বেল বস্তা লোড দিয়ে ২ দিন পর কেশবপুর পাঠিয়ে দেন কোনো কাগজপত্র ছাড়াই (ট্রাক নং যশোর ট-০২৩৪ চালক রেজাউল)। শুরু থেকেই বস্তার মান নিয়ে অনেক লুকোচুরি হয়েছে বলে অভিযোগ রয়েছে। পুরাতন বস্তা চিহ্নিত হওয়ার পরেও সময়ক্ষেপণ করে বস্তা পাল্টানো কিংবা রাইস মিলে সরবরাহ করে আলামত লোপাটের সুযোগ করে দেয়া হয়েছে। একইভাবে পুরাতন চাল আড়াল করার চেষ্টা করা হয়েছে। সূত্র আরো জানায়, খুলনার আয়ান জুট মিলের সাথে যশোর সদর ওসিএলএসডি আশরাফুজ্জামানের সাথে ১৫ লাখ বস্তা খুলনা বিভাগের বিভিন্ন কেন্দ্রে সরবরাহ করার জন্য ডিল হয়। আশরাফুজ্জামান পরিদর্শক সমিতির নেতা হিসেবে সকল ওসিএলএসডিকে বলে দেন নিম্নমানের বস্তাগুলো গ্রহণ করে দ্রুত চলমান সংগ্রহ কাজে ব্যবহার করার জন্য। খুলনা বিভাগে আয়ান জুট মিল থেকে যত বস্তা সরবরাহ করা হয়েছে তার একটিও মানসম্মত ছিল না। কিছু বস্তা ব্যবহৃত পুরাতন। কিছু বস্তা অব্যবহৃত, তবে সেগুলোও পুরাতন। বস্তার গায়ে লাগানো ছাপ তার বড় প্রমান। চুক্তিপত্র অনুযায়ী সরবরাহ আদেশের সালে উৎপাদিত হতে হবে। কিন্তু ৩০ কেজির বস্তায় উৎপাদন সাল 
২০১৩/১৪ সালের ছাপ দেয়া আছে। এ বছরে উৎপাদিত বস্তার গায়ে ৬/৭ বছর আগের ছাপ নিশ্চয় কেউ লাগাবে না। তদন্ত যশোর এলএসডি কেন্দ্রিক ৫০ কেজির ১ লাখ বস্তার হিসেব মিলিয়েছেন, ৩০ কেজির মানহীন বস্তার হিসাব অতটা গুরুত্ব দেননি। করোনার কারণে কর্মকর্তাদের চলাচল সীমিত হওয়ার কারনে ওসিএলএসডিগণ এই সুযোগের সদ্ব্যবহার করেছেন। যশোর জেলার অপর দুই সুবিধাভোগী নাভারণ এবং ঝিকরগাছা ওসিএলএসডির বিরুদ্ধে দৃশ্যত কোনো ব্যবস্থা নেয়া হয়নি। ঝিকরগাছা এলএসডিতে কিছুদিন আগে দত্তনগর এলএসডি থেকে 
আমন চাল আসে। এতে ২/১টি বস্তায় বিনির্দেশ বহির্ভূত চাল থাকায় তিনি ট্রাক দাঁড় করিয়ে রেখে চাল পরিবর্তন করিয়ে তবে আনলোড করেছেন। অথচ পুরাতন বস্তা আনলোড করার সময় কোন উচ্চবাচ্য হয়নি। এমনকি কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হয়নি। অনৈতিক বোঝাপড়া হয়েছে বলে অভিযোগ রয়েছে। একই কাজ নাভারণ ওসিএলএসডি করেছেন। কিন্তু রহস্যজনকভাবে কর্তৃপক্ষ ব্যবস্থা গ্রহণে বিরত থেকেছেন। কিছু বান্ডিলে খারাপ থাকলে অগোচরে হতে পারে। এরপরও করোনা সংকটের মধ্যে তদন্ত কমিটি যেটুকুই তদন্ত করেছেন, তারমধ্যে অসংগতি ও সরকারকে ঠকিয়ে আশরাফুজ্জামান নিজে লাভবান হয়েছেন এমন নানা প্রমাণ পেয়েছেন। একই সাথে এই বস্তা কেলেংকারির সাথে আরও কয়েকজন অফিসার ও আয়ান জুট মিল কর্তৃপক্ষের যোগসূত্রতা রয়েছে। যে কারণে এসব ব্যাপারে দ্রুত ব্যবস্থা নেয়ার সুপারিশ করেন তদন্ত কমিটি। আশরাফুজ্জামান তদন্ত কমিটিকে মোটা অংকের অর্থের বিনিময়ে ম্যানেজ করার চেষ্টা করে তার সাময়িক রবখাস্ত আদেশ থেকে রক্ষা পেয়েছেন। আঞ্চলিক খাদ্যনিয়ন্ত্রক তাকে শাস্তিমূলক বদলি করেন। গত ১৯ জুলাই এক আদেশে ওসিএলএসডি সদর আশরাফুজ্জামানকে প্রশাসনিক কারণ দেখিয়ে তেরখাদা উপজেলায় বদলি করা হয়। আর যশোরে দেয়া হয়েছে আবুল কালাম আজাদকে। কিন্তু বদলির আদেশের পরও তিনি টালবাহানা ও নানামুখি দেনদরবারে লিপ্ত রয়েছেন। নিজের সিবিএ দাপট দেখানোর চেষ্টা করে চলেছেন। এ ব্যাপারে খুলনা আঞ্চলিক খাদ্য নিয়ন্ত্রক মাহবুবুর রহমান জানিয়েছেন, আশরাফুজ্জামানের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত হয়েছে। ওই বস্তা কেলেংকারি ঘটনায় জুট মিল, রাইসমিলসহ আরো কয়েকটি ইউনিটের যোগসূত্রতা রয়েছে। তদন্ত কমিটি যশোর সদর ওসি এলএসডিসহ সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে প্রতিবেদন দিয়েছে। আর আরশাফুজ্জামানের অনিয়ম অসংগতির অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় তাকে বদলি করা হয়েছে। ২ বছরের আগে গুদামের দায়িত্ব পরিত্যাগ শাস্তিমুলক বদলিই বলা যেতে পারে। প্রশাসনিক কারণে তাকে বদলি করা হয়েছে এমন আদেশ দেয়া হয়েছে।

মাগুরার শ্রীপুরে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জেরে প্রতিপক্ষের লোকেরা প্রতিবন্ধীকে পিটিয়ে আহত করেছে

মাগুরার শ্রীপুরে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জেরে প্রতিপক্ষের লোকেরা  প্রতিবন্ধীকে পিটিয়ে আহত করেছে




মো:রাসেল হোসেন, শ্রীপুর (মাগুরা)প্রতিনিধি :মাগুরার শ্রীপুর উপজেলার রাজাপুর গ্রামের ইসরাফিল শেখ (৩০) নামে এক মানসিক প্রতিবন্ধীকে জমা-জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষের লোকেরা বাঁশ দিয়ে পিটিয়ে ডান হাত ও পাঁ ভেঙ্গে দিয়েছে। ইসরাফিল শেখ মাগুরা ২৫০ শয্যা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।
এলাকাবাসি জানান,স্থানীয় প্রভাবশালীদের কারনে ন্যায় বিচার না পাওয়ার আশঙ্কায় রয়েছেন মানসিক প্রতিবন্ধী পরিবারটি।
পরিবার সুত্রে জানা গেছে, উপজেলার আমলসার ইউনিয়নের রাজাপুর গ্রামের মানসিক প্রতিবন্ধী ইসরাফিল শেখ পিতা মানসিক প্রতিবন্ধী আব্দুর সালাম শেখের সাথে প্রতিবেশি আলিরাজ শেখ গংদের দীর্ঘদিন যাবৎ জমা-জমি সংক্রান্ত বিরোধ চলে আসছিল।
গত ২২ জুলাই বিকালে মানসিক প্রতিবন্ধী ইসরাফিল শেখ তার বাড়ির প্রবেশ পথ বাঁশ দ্বারা বন্ধ করে দিলে তার প্রতিপক্ষ মোঃ আলীরাজ, মোঃ বিল্লাল শেখ, মোঃ হালিম শেখ, মোঃ আলিমদ্দিন, মোঃ মন্নু শেখদের সাথে তর্কাতর্কি হয়। তর্কাতর্কির এক পর্যায়ে অভিযুক্তরা প্রতিবন্ধী ইসরাফিলকে বাঁশের লাঠি দিয়ে এলোপাতাড়ি পিটিয়ে ডান হাত ও পা ভেঙ্গে দেওয়াসহ গুরুতর জখম করে।

 
ইসরাফিলের চিৎকার শুনে প্রতিবেশি মোঃ সিরাজ শেখ, আকমল শেখ, মনসুর আলী বিশ্বাস তাকে উদ্ধার করে প্রথমে শ্রীপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য মাগুরা ২৫০ শয্যা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার জন্য পরামর্শ দেয়। বর্তমানে ইসরাফিল সেখানে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।
ইসরাফিলের পরিবারের ৫ সদস্যের মধ্যে ৩ জনই মানসিক প্রতিবন্ধী বলে জানা গেছে।
এ বিষয়ে শ্রীপুর থানা অফিসার ইনর্চাজ মোঃ আলী আহমেদ মাসুদ বলেন, আমি ঘটনাটি শুনেছি তদন্তকারি অফিসার এস আই রাসেলকে তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য বলেছি।

মুজিব জন্মশতবর্ষ উপলক্ষে নোবিপ্রবি ছাত্রলীগ নেতার বৃক্ষরোপণ

মুজিব জন্মশতবর্ষ উপলক্ষে নোবিপ্রবি ছাত্রলীগ নেতার বৃক্ষরোপণ



নোবিপ্রবি প্রতিনিধি 

'মুজিবর্ষের আহ্বান, ৩ টি করে গাছ লাগান’- এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে বৃক্ষরোপণ করছে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ, নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় শাখা(নোবিপ্রবি)। 

 প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আহ্বানে বাংলাদেশকে প্রাকৃতিক দূর্যোগ থেকে পরিত্রাণের জন্য মুজিব শতবর্ষে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের ঘোষিত তিন মাস ব্যাপী বৃক্ষরোপণ কর্মসূচির আওতায় গতকাল রবিবার নোবিপ্রবি ছাত্রলীগ নেতা জাহিদুর রহমান নাইম বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল ফটক, শহীদ মিনারে ও প্রশাসনিক ভবনের সামনে মোট ১৫ টি গাছ লাগান। 

বৃক্ষরোপণের ব্যাপারে শাখা ছাত্রলীগ নেতা জাহিদুর রহমান নাইম বলেন, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কর্তৃক "মুজিব বর্ষের আহবান ৩ টি করে গাছ লাগান" স্লোগানকে অনুসরণ করে, আমাদের কেন্দ্রিয় ছাত্রলীগের  সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় ভাই ও সাধারণ সম্পাদক শ্রদ্ধেয় লেখক ভট্টাচার্য্য দাদার এর  অনুপ্রেরণা ও পরামর্শে এবং নোয়াখালী-৪ আসনের এমপি একরামুল করিম চৌধুরীর নির্দেশনায় বাংলাদেশ ছাত্রলীগ নোয়াখালী বিজ্ঞান  ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় শাখার পক্ষ থেকে করোনা কালীন সময়ে নিজ বিশ্ববিদ্যালয়ে বৃক্ষরোপণ করলাম। 'মুজিব বর্ষের অঙ্গীকার; দেশ হবে সবুজের সমাহার'।

সম্মিলিত হোমিওপ্যাথি জোটের উদ্যোগে হোমিওপ্যাথি উন্নয়নে ১১ দফা দাবিতে সংবাদ সম্মেলন

সম্মিলিত হোমিওপ্যাথি জোটের উদ্যোগে হোমিওপ্যাথি  উন্নয়নে ১১ দফা দাবিতে সংবাদ সম্মেলন





নিজস্ব প্রতিবদেক:
করোনা, ডেঙ্গু চিকুনগুনিয়াসহ যে কোন মহামারীতে হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসা সুনামের সহিত ভূমিকা রাখতে সক্ষম হয়েছে। তারপরেও সরকার হোমিওপ্যাথি উন্নয়নে গুরুত্ব দিচ্ছে না এমত অবস্থায় হোমিওপ্যাথি চিকিৎসা ব্যবস্থার উন্নয়নে ১১ দফা দাবিতে জাতীয় প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলন করেন সম্মিলিত হোমিওপ্যাথি জোট।

  রবিবার, ২৬ জুলাই ২০২০ খ্রি.সকাল ১০.০০ টায় জাতীয় প্রেস ক্লাব এর ভিআইপি হলে হোমিওপ্যাথি চিকিৎসা উন্নয়নে ১১ দফা দাবিতে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। 

সম্মিলিত হোমিওপ্যাথি জোটের আহ্বায়ক ডাঃ মোঃ আরিফুর রহমান মোল্লার সভাপতিত্বে সংবাদ সম্মেলনে  আরো উপস্থিত ছিলেন সম্মিলিত হোমিওপ্যাথি জোটের সদস্য সচিব ডাঃমোঃ মুজিবুল্লাহ মজিব সহ হোমিওপ্যাথি জোটের অন্যান্য নেতারা।

এ সময় বক্তারা বলেন হোমিওপ্যাথি চিকিৎসা বিশ্বের ন্যয় বাংলাদেশে চিকিৎসা ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করন। তাই এই চিকিৎসা আরো গতিময় করার জন্য তারা ১১টি দাবি সরকারের নিকট পেশ করেন।

 ১১ দফা দাবিসমৃহ হলো---
১. বিশেষ বিবেচনায় এক হাজার BHMS এবং এক হাজার D. H.M.S চিকিৎসকদের চাকরি ব্যবস্থা করতে হবে।

২. হোমিওপ্যাথিক কাউন্সিল ও হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসা বাস্তবায়ন চাই।

৩. বিভাগীয় পর্যায়ে সরকারি ভাবে ডিগ্রী ও ডিপ্লোমা কলেজ ও হাসপাতাল প্রতিষ্ঠা করতে হবে।

৪. জাতীয়ভাবে হোমিওপ্যাথিক রিসার্চ সেন্টার স্থাপন করতে হবে।

৫. হোমিওপ্যাথিক বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করতে হবে।

৬. বেসরকারি হোমিওপ্যাথিক মেডিকেল কলেেজর শিক্ষক কর্মচারীদের বেতন ভাতা ১০০% করতে হবে।

৭. ভারতের আয়ুস মন্ত্রণালয়ের অনুকরণে পৃথক হোমিওপ্যাথিক মন্ত্রণালয় ও হোমিওপ্যাথিক পরিদপ্তর করতে হবে।

৮. DHMS চিকিৎসকদের জন্য শিক্ষা আইন শিথিল করে উচ্চতর শিক্ষার সু-ব্যবস্থা করতে হবে।

৯. প্রতিটি রাষ্ট্রীয় দপ্তরে C.M.H সিটি কর্পোরেশন এবং পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় চিকিৎসক নিয়োগ করতে হবে।

১০. M.H.M.S চিকিৎসকদের মান ডিগ্রীর সমমান করতে হবে।

১১. A.M.C তে নিয়োগ প্রাপ্ত হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসকদের রাজস্ব খাতে স্থানান্তর ও পি.এস সির মাধ্যমে নিয়মিত নিয়োগের ব্যবস্থা এবং ইন্টানী চিকিৎসকদের ভাতার ২০০০ টাকা করতে হবে।